রেড ক্রিসেন্ট মৌলিক ও প্রাথমিক চিকিৎসা প্রশিক্ষণের সনদ বিতরণ সম্পন্ন

রেড ক্রিসেন্ট মৌলিক ও প্রাথমিক চিকিৎসা প্রশিক্ষণের সনদ বিতরণ সম্পন্ন

রিয়াজুল করিম রিজভী,চট্টগ্রাম ব্যুরো প্রধানঃবাংলাদেশ রেড ক্রিসেন্ট সোসাইটি চট্টগ্রাম জেলা ইউনিটের উদ্যোগে যুব রেড ক্রিসেন্ট চট্টগ্রামের বাস্তবায়নে চট্টগ্রামের উপজেলা পর্যায়ে স্বেচ্ছাসেবক নিয়ে ৩ টি উপজেলা সীতাকুন্ড, পটিয়া ও সাতকানিয়াতে যুব স্বেচ্ছাসেবকদের রেড ক্রস রেড ক্রিসেন্ট মৌলিক ও প্রাথমিক চিকিৎসা প্রশিক্ষণের সনদ বিতরণ আজ ১৯ নভেম্বর চট্টগ্রাম জেলা রেড ক্রিসেন্ট মাঠ প্রাঙ্গনে অনুষ্ঠিত হয়। সোসাইটির ম্যানেজিং বোর্ড সদস্য ও রেড ক্রিসেন্ট চট্টগ্রাম জেলা ইউনিটের ভাইস চেয়ারম্যান ডাঃ শেখ শফিউল আজম এর সভাপতিত্বে অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন চট্টগ্রাম বিভাগীয় পরিচালক (স্বাস্থ্য) ডা: হাসান শাহরিয়ার কবির। বিশেষ অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন রেড ক্রিসেন্ট সিটি ইউনিটের কার্যকরী পর্ষদ সদস্য মহসিন উদ্দীন চৌধুরী ফয়সাল, আনোয়ার আজম। যুব রেড ক্রিসেন্ট চট্টগ্রামের যুব প্রধান মোঃ ইসমাইল হক চৌধুরী ফয়সাল এর স্বাগত বক্তব্যে আরো উপস্থিত ছিলেন জেমিসন রেড ক্রিসেন্ট মাতৃসদন হাসপাতালের ইনচার্জ মোস্তাফিজুর রহমান, চট্টগ্রাম জেলা ইউনিটের ইউনিট লেভেল অফিসার আব্দুর রশিদ খান, সিটি ইউনিটের ইউনিট লেভেল অফিসার মুহাম্মদ ইয়াহইয়া বখতিয়ার, প্রশাসনিক কর্মকর্তা আশরাফ-দৌল্লা সুজন। অনুষ্ঠান সঞ্চালনায় ছিলেন যুব রেড ক্রিসেন্ট চট্টগ্রামের যুব উপ প্রধান-২ মোঃ মঈনুল ইসলাম । 

প্রধান অতিথির বক্তব্যে ডা. হাসান শাহরিয়ার কবির বলেন, রেড ক্রিসেন্টে প্রাথমিক চিকিৎসা প্রশিক্ষণ তাদের প্রাতিষ্ঠানিক শিক্ষার পাশাপাশি নিজের আত্মবিশ্বাস বৃদ্ধিতে ব্যাপক ভূমিকা পালন করবে। মানবসেবায় যুব স্বেচ্ছাসেবকরা ফ্রন্টলাইন যোদ্ধা। মানব সেবার জন্য আন্তরিকতার প্রয়োজন রয়েছে। মানবসেবায় যুব স্বেচ্ছাসেবকরা স্বাস্থ্য সেবা, দূর্যোগ কালীন সময়ে কাজ করে আমাদের হাতকে শক্তিশালী করবে তার পাশাপাশি প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার হাতকে শক্তিশালী করবে।

সভাপতির বক্তব্যে ডাঃ শেখ শফিউল আজম বলেন, প্রশিক্ষিত হয়ে যুব স্বেচ্ছাসেবকরা উপজেলা পর্যায়ে মানবসেবার ব্রত নিয়ে কাজ করে যাবে। 

এতে ৩ টি উপজেলার মোট ৯০ জন প্রশিক্ষণে অংশগ্রহণ করে উক্ত প্রশিক্ষণের শুধুমাত্র কৃতকার্যকারী ও উপজেলা পর্যায়ে ১ম, ২য় ও ৩য় স্থান অধিকারকারীদের মাঝে অতিথিবৃন্দ পুরষ্কার ও সনদ বিতরণ করেন।

লোহাগড়া থানা পুলিশের অভিযানে এক সাজাপ্রাপ্ত আসামি গ্রেফতার

 লোহাগড়া থানা পুলিশের অভিযানে এক সাজাপ্রাপ্ত আসামি গ্রেফতার

মো: আজিজুর বিশ্বাস স্টাফ রিপোর্টার নড়াইল।।নড়াইলের লোহাগড়া উপজেলার থানা পুলিশের অভিযানে দুই বছরের এক সাজাপ্রাপ্ত আসামী গ্রেপ্তার।নড়াইলের লোহাগড়া উপজেলার  জয়পুর ইউনিয়নের চাচই গ্রামে মৃত আফসার মোল্লার ছেলে মোঃ সিরাজুল ইসলাম মোল্লা নামে ২০১৮ সালে যৌতুক নিরোধ আইনের (৩) ধারায় মাত্রা বিবেচনার দুই বছরের সশ্রম কারাদণ্ড ও ৫০০০ টাকা জরিমানা এবং অনাদায়ে ২ মাসের বিনাশ্রম কারাদণ্ডে দণ্ডিত করে আদালত।

পুলিশ  সুত্রে জানা যায়  লোহাগড়ার থানার এস আই তৌফিক এর নেতৃত্বে এ,এস আই তপন কুমার পুলিশের সঙ্গীয় ফোর্স নিয়ে ১৯/১১/২০২০ তারিখ : বৃহস্পতিবার বিকাল ৪ টার দিকে চাচই পূর্বপাড়া থেকে সিরাজুল ইসলাম মোল্লাকে, গ্রেফতার করে।এসঅাই তৌফিক জানান আসামীকে জেলহাজতে প্রেরণ কর

সিরাজগঞ্জে মাদার উপকারভোগীদের হেলথ ক্যাম্পের উদ্বোধন

 সিরাজগঞ্জে  মাদার উপকারভোগীদের হেলথ ক্যাম্পের উদ্বোধন

মাসুদ রানা সিরাজগঞ্জ জেলাপ্রতিনিধিঃ সিরাজগঞ্জে কর্মজীবী ল্যাকটেটিং মাদার সহায়তা তহবিল কর্মসূচির আওতায়  ২০১৯-২০২০ অর্থ  বছরের ভাতা প্রাপ্ত   উপকারভোগীদের জন্য তিন দিনব্যাপী হেলথ ক্যাম্প উদ্বোধন করা হয়েছে। গতকাল  বৃহস্পতিবার সকাল ১১ টার  দিকে জেলা প্রশাসন ও জেলা মহিলা বিষয়ক অধিদপ্তরের আয়োজনে  অত্র কার্যালয়ে  মাঠ প্রাঙ্গণে  প্রধান  অতিথি  হিসেবে  ক্যাম্পের উদ্বোধন করেন জেলা প্রশাসক ড.ফারুক  আহাম্মদ । জেলা মহিলা বিষয়ক অধিদপ্তরে উপপরিচালক  কানিজ ফাতেমা এর সভাপতিত্বে অনুষ্ঠিত সভায় বিশেষ অতিথির বক্তব্যে  রাখেন  সিরাজগঞ্জ  পুলিশ  সুপার  হাসিবুল  আলম  বিপিএম,পরিবার  পরিকল্পনা  অধিদপ্তরের  উপপরিচালক মােঃ তারিকুল ইসলাম,অগ্রণী  ব্যাংকের সহকারী  মহাব্যবস্থাপক মোঃ ফরিদুল হক  , সদর উপজেলা মহিলা  ভাইস  চেয়ারম্যান  অধ্যাপিকা হাসনা হেনা , মহিলা  কাউন্সিলর রোমানা রেশমা ,  মেডিকেল অফিসার ডাঃ সৌমিত্র বসাক প্রমুখ।  বক্তরা বলেন, শিশু স্বাস্থ্যের প্রতি অনেক বেশি বেশি গুরুত্ব দিতে হবে। কেননা শিশুরাই আগামী দিনের ভবিষ্যৎ। সুস্থ মা ও সুস্থ সন্তান না থাকলে দেশের অগ্রগতি সম্ভব হয় না। এ অগ্রগতির ধারা অব্যাহত রেখে শিশু স্বাস্থ্য সুরক্ষায় আমাদের আরো এগিয়ে যেতে হবে।প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার সুদৃঢ় নেতৃত্বে জাতিসংঘ ঘোষিত শিশু মৃত্যুহার ও মাতৃমৃত্যু হার হ্রাসের এমডিজি লক্ষ্যমাত্রা আমাদের।

খুলনায় মাস্ক না পরায় ১৫ টি মামলা ও ১৬ জন আটক

 খুলনায় মাস্ক না পরায় ১৫ টি মামলা ও ১৬ জন আটক

তুহিন রানা (আব্রাহাম) ; খুলনা নগর প্রতিনিধিঃকরোনা ভাইরাস সংক্রমণের সম্ভাব্য দ্বিতীয় ওয়েভ মোকাবেলার প্রস্তুতি হিসেবে অদ্য ১৯ নভেম্বর, ২০২০ খ্রিস্টাব্দ তারিখে সুযোগ্য জেলা প্রশাসক ও বিজ্ঞ জেলা ম্যাজিস্ট্রেট, খুলনা জনাব মোহাম্মদ হেলাল হোসেন পিএএ মহোদয়ের নির্দেশে এবং বিজ্ঞ অতিরিক্ত জেলা ম্যজিস্ট্রেট, খুলনা জনাব মোঃ ইউসুপ আলী মহোদয়ের তত্ত্বাবধানে দৌলতপুর বাজারসহ নগরীর বিভিন্ন স্থানে মোবাইল কোর্টের অভিযান পরিচালিত হয়। মোবাইল কোর্টের অভিযান পরিচালনা করেন জেলা প্রশাসনের নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট জনাব দীপা রানী সরকার এবং জনাব নূরী তাসমিন ঊর্মি। এছাড়া খুলনার বিভিন্ন উপজেলায় স্বাস্থ্যবিধি নিশ্চিতকরণে মোবাইল কোর্টের অভিযান পরিচালিত হয়। 

মোবাইল কোর্ট পরিচালনাকালে দরিদ্র্য মাস্কবিহীন মানুষকে মাস্ক বিতরণ করা হয়। মাস্ক সাথে না থাকায় এবং যথাযথভাবে মাস্ক পরিধান না করায় ১৬ (ষোল) জনকে আটক করা হয় এবং মাস্ক পরিধান না করার দায়ে ১৫ (পনেরো) জনকে মোট ৬,১০০/- (ছয় হাজার একশত) টাকা অর্থদণ্ড প্রদান করা হয়। ‘সংক্রামক রোগ (প্রতিরোধ, নিয়ন্ত্রণ ও নির্মূল) আইন, ২০১৮’ এর সংশ্লিষ্ট ধারার বিধান মোতাবেক এসব জরিমানা করা হয়। 

সম্প্রতি করোনা ভাইরাস সংক্রমণের হার বেড়ে যাওয়ায় গত ০৮ নভেম্বর, ২০২০ খ্রিস্টাব্দ তারিখের জেলা আইন-শৃঙ্খলা কমিটির সভার সর্বসম্মত সিদ্ধান্তের প্রেক্ষিতে ০৯ নভেম্বর, ২০২০ তারিখ থেকে জেলা প্রশাসন কঠোর অবস্থা গ্রহণ করে। 

মোবাইল কোর্ট পরিচালনায় সহযোগিতা করেন এপিবিএন এবং উপজেলাসমূহে সংশ্লিষ্ট থানার পুলিস সদস্যগণ। স্বাস্থ্যবিধি নিশ্চিতকরণে জেলা প্রশাসনের এমন অভিযান অব্যাহত থাকবে।

জয় বাংলা ইয়ুথ অ্যাওয়ার্ড পেলো ১ টাকায় শিক্ষা

 জয় বাংলা ইয়ুথ অ্যাওয়ার্ড পেলো ১ টাকায় শিক্ষা

শিপন নাথ,চট্টগ্রাম প্রতিনিধি:- ইয়াং বাংলা আয়োজিত ‘জয় বাংলা ইয়ুথ অ্যাওয়ার্ড-২০২০’ এর জন্য মনোনীত হয়েছেশিক্ষায় উন্নয়নমূলক সামাজিক সংগঠন 'এক টাকায় শিক্ষা ফাউন্ডেশন'। মঙ্গলবার চতুর্থ জয় বাংলা অ্যাওয়ার্ডে বিজয়ীদের নাম ঘোষণা করেন প্রধানমন্ত্রীর তথ্য ও প্রযুক্তি বিষয়ক উপদেষ্টা সজীব ওয়াজেদ জয়।  

এবার অ্যাওয়ার্ডের জন্য ৬০০টির বেশি সংগঠনের আবেদন জমা পড়ে। এর মধ্যে এবার দুইটি ক্যাটাগরিতে মনোনীত শীর্ষ ৫০ টি সংগঠন হতে ৩০টি সংগঠন জয় বাংলা অ্যাওয়ার্ড পাচ্ছে। এর মধ্যে সামাজিক অন্তর্ভুক্তিমূলক ক্যাটাগরিতে সুবিধাবঞ্চিত এবং পিছিয়ে পড়া জনগোষ্ঠীর ক্ষমতায়নে গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা রাখায় ‘এক টাকায় শিক্ষা’ এ অ্যাওয়ার্ড পাচ্ছে।

২০১৭ সালে চট্টগ্রাম বিশ্ববিদ্যালয়ে এক টাকায় শিক্ষা ফাউন্ডেশন সংগঠনটি প্রতিষ্ঠিত হয়। প্রতিষ্ঠালগ্ন থেকেই সুবিধা বঞ্চিত পথশিশুদের এবং আর্থিক অসচ্ছলতার কারণে পড়াশোনা চালিয়ে যেতে অপারগ শিক্ষার্থীদের শিক্ষা অর্জনের পথকে মসৃণ করার কাজ করছে। শিক্ষা গ্রহণের অধিকার আদায়ে বিভিন্ন সময় বিভিন্ন কর্মসূচি পালন করে আসছে সংগঠনটি। শিক্ষার আলো থেকে বঞ্চিত, শিক্ষার অভাবে যারা তাদের দক্ষতা ও সৃজনশীলতা বিকাশের সুযোগ পায় না তাদের মাঝে শিক্ষার আলো ছড়িয়ে দিতে কাজ করছে '১ টাকায় শিক্ষা ফাউন্ডেশন'।  ফাউন্ডেশনের প্রত্যেক সদস্যের দেওয়া দৈনিক ১ টাকা অনুদানে নিশ্চিত হচ্ছে পিছিয়ে থাকা দরিদ্র পরিবারের শিক্ষার্থীদের শিক্ষা কার্যক্রম। আর এভাবেই এসব সুবিধাবঞ্চিত শিশু এবং পিছিয়ে পড়া শিক্ষার্থীদের সুশিক্ষা লাভে অগ্রাধিকার দিয়ে বিনামূল্যে শিক্ষা প্রদান করার মাধ্যমে আলোকিত সমাজ গঠনের কাজ করে যাচ্ছে সংগঠনটি।

কথা হয় সংগঠনের প্রতিষ্ঠাতা চট্টগ্রাম বিশ্ববিদ্যালয়ের কম্পিউটার বিজ্ঞান বিভাগের শিক্ষার্থী মো. রিজুয়ানের সঙ্গে। তিনি বলেন, সর্বপ্রথম আমরা যখন ষোলশহরে কাজ শুরু করি। আস্তে আস্তে ষোলশহর ছাড়াও আরও অনেক জায়গায় কাজ শুরু করি। টিম মেম্বার বাড়লে চট্টগ্রামের বাইরের কয়েকটি জেলায় আমাদের কার্যক্রম চলে। যেসব স্কুলে আমরা ক্যাম্পেইন করেছি তাদের সবাইকে বলে এসেছি- আজ থেকে তোমাদের কারও টাকার অভাবে পড়াশোনা বন্ধ হবে না। টাকার অভাবে কারও পড়ালেখা বন্ধ হলে সেখানে ছুটে যাচ্ছেন আমাদের টিম মেম্বাররা। ‘জয় বাংলা ইয়ুথ অ্যাওয়ার্ড’ প্রাপ্তি আমাদের সবার প্রচেষ্টাকে উৎসাহিত করবে। এ অর্জনে এক টাকায় শিক্ষা ফাউন্ডেশন এর সঙ্গে জড়িত সবার প্রতি কৃতজ্ঞতা। আগামী দিনেও আমাদের কার্যক্রমে সহযোগিতা অব্যাহত থাকবে এমনটা প্রত্যাশা। আমরা চেষ্টা করে যাচ্ছি এমন একটি সংগঠন হিসেবে দাঁড়াতে, যে সংগঠনের মাধ্যমে আমরা আমাদের সমাজের সব মানুষকে একত্র করে তাদের সহযোগিতার মাধ্যমে সবার মাঝে শিক্ষার আলো ছড়িয়ে দিতে পারবো। 

উল্লেখ্য, সেন্টার ফর রিসার্চ অ্যান্ড ইনফরমেশনের (সিআরআই) তত্ত্বাবধানে ২০১৪ সালের নভেম্বরে যাত্রা শুরু করে ‘ইয়াং বাংলা’। সেই থেকে প্রতি বছর সমাজ ও মানুষের কল্যাণে কাজ করে যাওয়া যুব উদ্যোক্তা ও সংগঠনকে অনুপ্রাণিত করতে প্রাতিষ্ঠানিক পর্যায়ে বিভিন্ন ক্ষেত্রে অবদানের স্বীকৃতি হিসেবে ‘জয় বাংলা ইয়ুথ অ্যাওয়ার্ড’ প্রদান করা হচ্ছে। ২০১৫ থেকে ২০১৮ সাল পর্যন্ত দেশ ও সমাজে অনবদ্য ভূমিকা রাখা ১৩০টি যুব সংগঠনকে সম্মাননা প্রদান করেছে ‘ইয়াং বাংলা’।

গরীব অসহায় ও পথ শিশুদের মার্কস বিতরণ করেন কালমাটি স্টুডেন্ট ওয়েলফেয়ার এসোসিয়েশন

 গরীব অসহায় ও পথ শিশুদের মার্কস বিতরণ করেন কালমাটি স্টুডেন্ট ওয়েলফেয়ার এসোসিয়েশন

মোঃ রশিদুল ইসলাম রিপন, লালমনিরহাট জেলা প্রতিনিধি,গণপ্রজাতন্ত্রী বাংলাদেশ সরকারের নো মাক্স, নো সার্ভিস বাস্তবায়ন করতে ১৯ নভেম্বর ২০২০ বৃহস্পতিবার সকাল ১০ ঘটিকায় কালমাটি স্টুডেন্ট ওয়েলফেয়ার এসোসিয়েশনের  উদ্যোগে লালমনিরহাটের বিভিন্ন এলাকায় ছিন্নমূল মানুষ ও পথ শিশুদের মাজে ফ্রি মাক্স বিতরণ করা হয়।  উক্ত ফ্রি মাক্স বিতরণের উদ্বোধন করেন কালমাটি স্টুডেন্ট ওয়েলফেয়ার এসোসিয়েশনের মাননীয় উপদেষ্টা রবিউল ইসলাম স্বপন।

লালমনির শহরে বিভিন্ন এলাকায় কালমাটি স্টুডেন্ট ওয়েলফেয়ার এসোসিয়েশন সদস্য বৃন্দ ছিন্ন মূল মানুষের কাছে ফ্রি মার্কস বিতারণ করেন এবং করোনা থেকে রক্ষা পেতে স্বাস্থ্য বিধি মেনে চলার জন্য সাধারণ মানুষকে সচেতন করেন।

থানায় জিডি হবে ৫ মিনিটে- এসপি মহিবুল ইসলাম

 থানায় জিডি হবে ৫ মিনিটে-  এসপি মহিবুল ইসলাম

কৃষ্ণ সরকার পীযূষ,ভ্রাম্যমাণ প্রতিনিধিঃকুড়িগ্রামের সকল থানায় মানুষের ভোগান্তি কমিয়ে দ্রুত সময়ে জিডি করতে নানা উদ্যোগ গ্রহন করেছেন পুলিশ সুপার মোহাম্মদ মহিবুল ইসলাম খান বিপিএম।

জানা গেছে, বেশিরভাগ মানুষকে যে কারনে থানায় যেতে হয় তার মধ্যে অন্যতম কারন হলো জিডি করা। দ্রুততম সময়ে জিডি করতে পুলিশ সুপার কর্তৃক জেলার সকল থানায় জিডির ফর্ম সরবরাহ করা হয়েছে।মানুষের দ্রুত সেবা প্রদান নিশ্চিত করতে এমন উদ্যোগ গ্রহন করেছেন কুড়িগ্রামের এসপি।

পুলিশ সুপার মোহাম্মদ মহিবুল ইসলাম খান বিপিএম জানান, জিডি লেখার জন্য কারো কাছে যেতে হবে না। কাউকে টাকা পয়সা দিবেন না, টাকা চাইলে সিনিয়র অফিসারদের জানাবেন। নিজের জিডি নিজেই লিখুন। এটা প্রয়োজনের জন্য সংগ্রহ করে রাখতে পারবেন।

তিনি বলেন,জিডি করতে গিয়ে  ডিউটি অফিসারের কাছ থেকে এক কপি ফর্ম নিবেন। ফর্মে আপনার প্রয়োজনীয় তথ্য লিখে ফটোকপি করে মোট তিনকপি ডিউটি অফিসারের কাছে দিবেন। ডিউটি অফিসার এটার উপর সীল স্বাক্ষর দিয়ে এক কপি আপনাকে ফেরত দিবেন।

পুলিশ সুপার আরো বলেন, সকল সরকারি প্রতিষ্ঠানের সেবা পাওয়া প্রত্যেক জনগনের নাগরিক অধিকার। শুধু পুলিশ নয় সকল প্রতিষ্ঠানের ঘুষ/দূর্ণীতির বিরুদ্ধে সবাইকে সোচ্চার হতে হবে।

**যেসব কারনে জিডি করা হয় সেগুলো নিম্নে দেওয়া হলোঃ

১। মালামাল/কাগজপত্র হারানো, ২।মানুষ হারানো

৩। ভয়ভীতি হুমকি প্রদান। 

পুলিশ সুপার কর্তৃক উপরোক্ত বিষয়ে তিন লাইনে জিডি লেখার ফরম্যাট।

তাং-     খ্রিঃ

বরাবর

অফিসার ইনচার্জ,

............. থানা, কুড়িগ্রাম জেলা।


বিষয়ঃ সাধারন ডায়েরী/জিডি করার আবেদন


জনাব, 

বিনীত নিবেদন এই যে আমি.............. পিতা-.......  গ্রাম-............. থানা..............., জেলা কুড়িগ্রাম থানায় এসে লিখিতভাবে জানাচ্ছি যে, (এইটুকু সব জায়গা একই থাকবে শুধুমাত্র নিচের বিষয়বস্তুগুলো প্রয়োজনে পরিবর্তন করবেন)


"কাগজপত্র হারানোর বিষয়ে"

গত ইং  তারিখ বিকাল  ঘটিকার সময় বাড়ি থেকে স্কুলে/বাজারে/মার্কেটে যাওয়ায় সময় আমার কাছে থাকা মোবাইল/এসএসসি কাগজপত্র/পাসপোর্ট/ড্রাইভিং লাইসেন্স হারিয়ে যায়। বিভিন্ন জায়গায় খোজাখুজি করে পাই নাই

((কাগজপত্র/মালামালের বিবরণঃ যার যেটা হারাবে সেটা উল্লেখ করবেন যেমন মোবাইল নং, IMEI no,   SSC/HSC ROLL, REGI, Passport no ETC)


"মানুষ হারানোর বিষয়"

উপরের ফরম্যাট ঠিক রেখে এখান থেকে শুরু

গত ইং   তারিখ বিকাল   ঘটিকার সময় বাড়ি থেকে স্কুলে/বাজারে/মার্কেটে যাওয়ায় সময় আমার ছেলে/মেয়ে/বাবা কোথায় যেন চলিয়া যায়। পরবর্তীতে সে আর বাড়িতে ফিরে আসেন নাই। খোজাখুজি অব্যাহত আছে... (হারানো নিখোঁজ ব্যক্তির শারীরিক বর্ণনা দিতে হবে)


"ভয়ভীতি দেখানোর বিষয়"

উপরের ফরম্যাট ঠিক রেখে এখান থেকে শুরু..

গত ইং  তারিখ বিকাল  ঘটিকার সময় পারিবারিক শত্রুতার বিরোধের জন্য বা অন্যান্য কারনে যদু/মদু (ঠিকানা যতটুকু আছে) মোবাইল নাম্বার 01712.. হতে আমার মোবাইল ফোনে অথবা সরাসরি অকথ্য ভাষায় গালাগালি সহ নানা রকম ভয়ভীতি হুমকি দেখায়।


অতএব উপরোক্ত বিষয়ে সাধারন ডায়েরী করতে আপনার একান্ত মর্জি হয়।

নিবেদক

নামঃ

মোবাইল নং-

কয়রায় কোভিড-১৯,নারী ও শিশু সহিংসতা প্রতিরোধে সচেতনতা মূলক উঠান বৈঠক

 কয়রায় কোভিড-১৯,নারী ও শিশু সহিংসতা প্রতিরোধে সচেতনতা মূলক উঠান বৈঠক


মোহাঃ ফরহাদ হোসেন কয়রা (খুলনা) প্রতিনিধিঃকোভিড-১৯, নারী ও শিশুর প্রতি সকল ধরনের সহিংসতা প্রতিরোধে সচেতনতা বৃদ্ধির লক্ষ্যে গত ১৯ নভেম্বর বিকাল ৩ টায় কয়রা উপজেলার মহারাজপুর ইউনিয়নে ৯নং ওয়ার্ডে মাদারবাড়ি গ্রামে উঠান বৈঠক অনুষ্ঠিত হয়েছে। কয়রা জলবায়ু পরিষদের আয়োজনে উঠান  বৈঠক অনুষ্ঠিত হয়। জলবায়ু পরিষদের সদস্য এস এম গোলাম রসুল এর সভাপতিত্বে অনুষ্ঠিত এ উঠান বৈঠকে প্রধান অতিথির বক্তব্য রাখেন  মহারাজপুর ইউনিয়নের ৭,৮,৯ নং ওয়ার্ডে সংরক্ষিত নারী ইউপি সদস্য আয়েশা খাতুন । অন্যান্যের মধ্যে বক্তব্য রাখেন জলবায়ু পরিষদের স্বেচ্ছাসেবক টিমলীডার রাসেল রানা সহ জলবায়ু পরিষদের সদস্য বৃন্দ। এসময় উপস্থিত ছিলেন স্থানীয় গন্যমান্য ব্যক্তিবর্গ ও ৫০ জন মা ও পুরুষ অভিভাবক।আলোচনা শেষে মাস্ক ও লিপলেট বিতরন করা হয়।

ফলোআপঃলোহাগড়া ভুল চিকিৎসায় শিশুর মৃত্যু

ফলোআপঃলোহাগড়া ভুল চিকিৎসায় শিশুর মৃত্যু

মো: আজিজুর বিশ্বাস স্টাফ রিপোর্টার নড়াইলঃনড়াইলের লোহাগড়া মোরশেদা সার্জিক্যাল ক্লিনিক এন্ড ডায়গনষ্টিক সেন্টারের সেবিকার  ভূল চিকিৎসার শিকার হয়ে এক শিশু মারা গেছে বলে অভিযোগ উঠেছে।

১৮/মাস বয়সী শিশু মারিয়া উপজেলার ইতনা ইউনিয়নের লংকারচর গ্রামের বকুল শেখের মেয়ে। স্বজনদের সাথে কথা বলে জানা গেছে, শিশু মারিয়া দীর্ঘদিন ধরে নিউমোনিয়া রোগে আক্রান্ত।  অভিভাবকরা তাকে চিকিৎসার জন্য বৃহস্পতিবার সকালে লোহাগড়ার ডাক্তার প্রবীর কুমার দে শ্যাম এর চেম্বার  নিয়ে আসেন।এসময় ডাক্তার প্রবীর কুমার দে শ্যাম ওই শিশু রোগীকে ইনজেকশন দেওয়ার জন্য কুন্দসি এলাকার মোর্শেদা ক্লিনিকে পাঠান।

মোর্শেদা ক্লিনিকের  সেবিকা সিমা তড়িঘরি করে ওই শিশুকে একটি ইনজেকশন প্রয়োগ করেন বলে স্বজনদের অভিযোগ। এরপর বিকাল ৩ টার দিকে ওই শিশুর শারিরীক অবস্থার অবনতি ঘটলে মোর্শেদা ক্লিনিক কর্তৃপক্ষের পরামর্শে শিশুর অভিভাবকরা পুনরায় ডাক্তার প্রবীর কুমার দে শ্যামের চেম্বারে পাঠান। এ সময় ওই ডাক্তার শিশুটিকে প্রাথমিক  চিকিৎসা দিয়ে একটি ব্যবস্থাপত্র ধরিয়ে দেন,  এবং তাকে খুলনা শিশু হাসপাতালে নিয়ে যেতে বলেন।

এরপরে শিশুর শারিরীক অবস্থার অবনতি হওয়ায় অভিভাবকরা তাকে লোহাগড়া উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে নিয়ে আসেন। কিন্তু উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সের জরুরী বিভাগের কর্তব্যরত চিকিৎসক মোঃ শরিফুল ইসলাম জানান, স্বাস্থ্য কেন্দ্রে আসার আগেই শিশুটি মারা গেছে। চিকিৎসক প্রবীর কুমার দে শ্যাম শিশু মৃত্যুর অভিযোগ অস্বীকার করে বলেন, আমি তাকে খুলনা শিশু হাসপাতালে ভর্তির পরামর্শ দিয়েছি। এরপর ওই শিশুর অভিভাবকরা কি করেছে আমি জানি না। 

এ ব্যাপারে মোর্শেদা ক্লিনিকের মালিক  জাকির  হোসেনের সাথে যোগাযোগ করলে সে ওতার স্ত্রী র্মোরশেদা কিছু না বলে রাগান্বিত হয়ে সাংবাদিকদের সাথে কথা না বলে এড়িয়ে যায়।

এরপর কথা হয় ইনজেকশন করা ওই নার্স সিমার সাথে তিনি বলেন শ্যাম বাবুর লেখা পিসক্রিপশন এর অনুযায়ী শিশুকে  চিকিৎসা দেয়া হয়েছে, আর আমি সাংবাদিকদের কাছে কোন ভিডিও বক্তব্য দিতে পারবো না। বলে এড়িয়ে চলে যাই।

বেনাপোলে ১৩টি সোনার বারসহ চোরাচালানী আটক

 বেনাপোলে ১৩টি সোনার বারসহ চোরাচালানী আটক

স্টাফ রিপোর্টার   : যশোরের বেনাপোল আমড়াখালী চেকপোষ্ট থেকে ১৩ টি স্বর্ণের বারসহ আশিকুর রহমান নামে এক চোরাকারবারীকে আটক করেছে যশোর ব্যাটালিয়ন ৪৯ বিজিবি এর টহল দল। সে ঝিকরগাছা থানার সাদীপুর গ্রামের সৈয়দ আলীর ছেলে।যশোর ব্যাটালিয়ন ৪৯ বিজিবি এর লেঃ কর্নেল মোঃ সেলিম রেজা জানান, বৃহস্পতিবার বেনাপোল কোম্পানী সদরের অধীনস্থ আমড়াখালী চেকপোষ্টে কর্মরত সুবেদার শাহীন আলীর নেতৃত্বে একটি বিশেষ চোরাচালান বিরোধী তল-াশী অভিযান পরিচালনা করা হয়। ওই অভিযানে আমড়াখালী চেকপোষ্টের সামনে যশোর থেকে বেনাপোলগামী একটি লোকাল বাসে সন্ধেহভাজন আশিকুর রহম নের দেহ তল-াশী করা হয়। এসময় ভারতে পাচারের উদ্দেশ্যে অভিনব কায়দায় তার কোমরে বেল্টের মাধ্যমে বিশেষ ব্যবস্থায় বাধা ১৩ টি বার উদ্ধার  করা হয়। যার মূল্য ১ কোটি নয় লক্ষ টাকা। এ ঘটনায় মামলা হয়েছে।


ফুলপুরে সড়ক দূর্ঘটনায় শিশুর মৃত্যু

 ফুলপুরে সড়ক দূর্ঘটনায় শিশুর মৃত্যু

মিজানুর রহমান ইমন, ময়মনসিংহ জেলা প্রতিনিধিঃ ময়মনসিংহের ফুলপুর  উপজেলার ৩নং ভাইটকান্দি ইউনিয়নের জারুয়া গ্রামে ব্যাটারি চালিত অটো রিকশার ধাক্কায় ওমর ফারুক নামর  চার বছরের এক শিশুর মর্মান্তিক মৃত্যু হয়েছে । ঘটনাটি ঘটেছে, (১৯ই নভেম্বর) বৃহস্পতিবার সকাল দশটার দিকে । নিহত ওমর ফারুক (৪) জারুয়া গ্রামের হালিম মিয়ার ছেলে । 

জানা যায়, শিশু ওমর ফারুক বাড়ির পাশে রাস্তা পারাপারের সময় ফুলপুর থেকে বেপরোয়া গতিতে ছেড়ে আশা একটি ব্যাটারী চালিত অটো রিকশা  তাকে ধাক্কা দেয় । এতে করে শিশু ওমর ফারুক মাথায় গুরুতর আঘাত পায় । গুরুতর আহত অবস্থায় তাকে ফুলপুর  উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে নেয়ার পথে তার মৃত্যু হয় । শিশুটির অকাল মৃত্যুতে এলাকায় এক শোকের ছায়া নেমে এসেছে ।

কালীগঞ্জে ফায়ার সার্ভিস ও সিভিল ডিফেন্স সপ্তাহ- ২০২০’ পালিত

কালীগঞ্জে ফায়ার সার্ভিস ও সিভিল ডিফেন্স সপ্তাহ- ২০২০’ পালিত

খোন্দকার আব্দুল্লাহ বাশার, খুলনা ব্যুরো প্রধানঃ ঝিনাইদহের কালীগঞ্জে ফায়ার সার্ভিস ও সিভিল ডিফেন্স সপ্তাহ- ২০২০’ পালন  করা হয়েছে। এ উপলক্ষে বৃহস্পতিবার সকাল ১০ টার স্বাস্থ্য বিধি মেনে কালীগঞ্জ ফায়ার সার্ভিস ষ্টেশন কার্ষালয়ে এক মহড়া ও আলোচনা সভা অনুষ্ঠিত হয়। অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি ছিলেন কালীগঞ্জ উপজেলা নির্বাহী অফিসার সূবর্না রানী সাহা। অনুষ্ঠানের শুরুতেই প্রধান অতিথি কর্তৃক জাতীয় পতাকা ও প্রতিষ্ঠান প্রধান পতাকা উত্তোলনের পর ষ্টেশন টিমের সদস্যগন অতিথিকে ছালাম জানান। 

কালীগঞ্জ ফায়ার সার্ভিসের ষ্টেশন অফিসার শেখ মামুনুর রশীদের সভাপতিত্বে আলোচনা সভাতে বিশেষ অতিথির বক্তব্য রাখেন কালীগঞ্জ প্রেসক্লাবের সভাপতি সমকাল প্রতিনিধি জামির হোসেন ও ষ্টেশনের লিডার রবিউল ইসলাম। 

ফায়ার ষ্টেশন অফিসের সদস্য মুকুল হোসেনের সঞ্চালনায় সভাতে আরো উপস্থিত ছিলেন কালীগঞ্জ প্রেসক্লাবের সহ-সভাপতি জয়যাত্রা টেলিভিশনের হাবিব ওসমান, বিজয় টিভির আহসান কবির ও আমাদের নতুন সময় পত্রিকার ফিরোজ আহমেদ প্রমূখ।

অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি সূবর্না রানী সাহা বলেন, কালীগঞ্জে বিভিন্ন সময়ে দূর্ঘটনা, দূর্যোগ মোকাবেলায় ফায়ার সার্ভিস বেশ সুনামের সাথে দ্বায়িত্ব পালন করছে। তারা প্রতিনিয়ত বিপদগ্রস্থ মানুষের জান মালের নিরাপত্তায় অগ্রনী ভ’মিকা রাখছেন।

এসএ পরিবহন প্রাঃ লিঃ পার্সেল ও কুরিয়ার সার্ভিস থেকে ১শত ৯৩টি ভারতীয় শাড়ি উদ্ধার

 এসএ পরিবহন প্রাঃ লিঃ পার্সেল ও কুরিয়ার সার্ভিস থেকে ১শত ৯৩টি ভারতীয় শাড়ি উদ্ধার

মোঃ রশিদুল ইসলাম রিপন, লালমনিরহাট জেলা প্রতিনিধিঃ আজ বৃহস্পতিবার ১৯ নভেম্বর, দুপুর ১টার সময়  লালমনিরহাট  শহরের মিশন মোড়ে  এস.এ পরিবহন প্রাঃ লিঃ পার্শ্বেল ও কুরিয়ার সার্ভিস বুকিং কাউন্টার থেকে এন এস আই ও পুলিশ যৌথ অভিযান চালিয়ে ১৯৩পিচ ভারতীয় শাড়ী উদ্ধার করে এবং ম্যানেজার ও বুকিং ম্যানকে আটক করেছে পুলিশ।

জানা গেছে, গোপন সংবাদের ভিত্তিতে এন এস আই ও লালমনিরহাট সদর থানা পুলিশ যৌথ অভিযান চালিয়ে এসব ভারতীয় মালামাল উদ্ধার করেন এবং জিজ্ঞাসাবাদ করার জন্য ২জনকে আটক করেছে।  লালমনিরহাট সদর থানার ওসি শাহ আলম এ ঘটনার সত্যতা নিশ্চিত করেছেন।  ভারতীয় ১৯৩পিচ শাড়ী যার আনুমানিক মূল্য প্রায় ৮লক্ষ টাকা। এ সময় ২জনকে আটক করা হয় । তারা হলো- ইমরান হোসেন (২১), তপন কুমার (৩৫)। নোয়াখালী জেলার সোনাইমুড়ি উপজেলার নাগেরশ্বর গ্রামের মাখন চন্দ্রের ছেলে তপন কুমার ও একই উপজেলার কবিরহাটের রামবল্ববপুর গ্রামের এনায়েত হোসেনের ছেলে ইমরান হোসেন। এ ঘটনায় আটককৃতদের ব্যাপক জিজ্ঞাসাবাদ চলছে।

ঝিকরগাছায় তরিকুল নামের এক যুবক ৮ মাস ধরে নিখোঁজ

 ঝিকরগাছায় তরিকুল নামের এক যুবক ৮ মাস ধরে নিখোঁজ

স্টাফ রিপোর্টার : যশোরের ঝিকরগাছার পল্লী থেকে তরিকুল ইসলাম (৩৪) নামের এক যুবক ৮ মাস ধরে নিখোঁজ রয়েছে। সে উপজেলার শিওরদাহ গ্রামের আইয়ুব হোসেনের ছেলে। এ ঘটনায় তার পিতা আয়ুব হোসেন ঝিকরগাছা থানায় সাধারন ডায়েরী করেছেন। 

জিডি সুত্রে জানা গেছে, তরিকুল ইসলাম গত ১ এপ্রিল ২০২০ সকালে ডাক্তার দেখানের কথা বলে বাড়ি থেকে সাতক্ষীরার দিন থেকে নিকট আত্মীয়সহ সম্ভব্য সকল স্থানে খুজেও তার কোন সন্ধান মেলেনি। তরিকুল ইসলামের গায়ের রং শ্যামলা, উচ্চতা প্রায় ৫ফুট ৭ ইঞ্চি, মাথার চুল কালো, মূখমন্ডল লম্বাটে এবং পরনে জিন্সের প্যান্ট ও সাদা চেকের শার্ট ছিল। এদিকে ছোট ছেলে তরিকুল ইসলামকে হারিয়ে বৃদ্ধ পিতা-মাতাসহ পরিবারের সদস্যরা উদ্বেগ উৎকন্ঠার মধ্যে দিন কাটাচ্ছে। কেউ সন্ধান পেলে ০১৯১৬-৩৩৭৫৬৩, ০১৭১৩-৯২২৫৬৭ নাম্বারের যোগাযোগ করার জন্য অনুরোধ জানিয়েছেন তার চাচাতো ভাই রিপন হোসেন। এ ঘটনায় তার পিতা আয়ুব হোসেন ঝিকরগাছা থানায় সাধারন ডায়েরী করেছেন। যার নং-২৯৫, তারিখ-০৯/০৪/২০২০ ইং। 

খুলনা বিভাগীয় ইউনিয়ন পরিষদ সচিব সম্মেলন অনুষ্ঠিত

 খুলনা বিভাগীয় ইউনিয়ন পরিষদ সচিব সম্মেলন অনুষ্ঠিত

স্টাফ রিপোর্টার : যশোরে বাংলাদেশ ইউনিয়ন পরিষদ সচিব সমিতি খুলনা বিভাগীয় প্রতিনিধি সম্মেলন অনুষ্ঠিত হয়েছে। বৃহস্পতিবার সকাল সাড়ে ১০টায় জেলা পরিষদ মিলনায়তনে খুলনা বিভাগীয় প্রতিনিধি সম্মেলন বাস্তবায়ন কমিটির উদ্যোগে এ অনুষ্ঠান করা হয়।

খুলানা বিভাগীয় প্রতিনিধি সম্মেলনের বাস্তবায়ন কমিটির আহবায়ক শেখ হাবিবুর রহমানের সভাপতিত্বে প্রধান অতিথি হিসাবে উপস্থিত ছিলেন, স্থানীয় সরকার পল্লী উন্নয়ন ও সমবায় মন্ত্রণালয়ের প্রতিমন্ত্রী স্বপন ভট্টচার্য্য।সম্মেলনে খুলনা বিভাগের সচিবরা ১০ম গ্রেড উন্নিতকরণ ও শতভাগ বেতন ভাতা সরকারি কোষাগার থেকে প্রদান করার দাবি জানান। 

এসময় বক্তব্য রাখেন, স্থানীয় সরকার বিভাগ যশোরের উপ-পরিচালক হুসাইন শওকত, বাংলাদেশ ইউনিয়ন পরিষদ সচিব কেন্দ্রীয় সাধারণ সম্পাদক দেলওয়ার হোসেন, সভাপতি এইচ এম রেজাউল করিম তুহিনসহ প্রমুখ।

ধুলিয়ান ইউনিয়নে অভিনব কায়দায় মাস্ক বিতরণ করছেন মোমিনুর রহমান

 ধুলিয়ান ইউনিয়নে অভিনব কায়দায় মাস্ক বিতরণ করছেন মোমিনুর রহমান

স্টাফ রিপোর্টারঃ যশোর জেলার চৌগাছা উপজেলার ৪ নং  ধুলিয়ান ইউনিয়নের আসন্ন ইউনিয়ন পরিষদ নির্বাচনে নৌকা প্রতীক প্রত্যাশী চেয়ারম্যান পদপ্রার্থী সাবেক চেয়ারম্যান মরহুম আব্দুল জলিলের পুত্র এস এম মোমিনুর রহমান অভিনব কায়দায় প্রতিদিন জনসাধারণের মাঝে মাস্ক বিতরন করছেন। তিনি পায়ে হেঁটে প্রতিদিন ইউনিয়নের কোনো-না-কোনো ওয়ার্ডের গ্রামগুলোতে গিয়ে নিজ হাতে জনগণের মুখে মাস্ক পরিয়ে দিচ্ছেন, তারই ধারাবাহিকতায় আজ ১৯ শে নভেম্বর বৃহস্পতিবার ইউনিয়নের ২নং ওয়ার্ড  মুক্তারপুর অর্পণ দর্পন স্মৃতি পাঠাগারে রক্তে গ্রুপিং করার সময় নিজ হাতে জনসাধারণের  মাঝে মাস্ক বিতরণ করেন ।তিনি বলেন (চৌগাছা- ঝিকরগাছা) আসনের মাননীয়  জাতীয় সংসদ সদস্য বীর মুক্তিযোদ্ধা মেজর জেনারেল( অব:)ডাক্তার অধ্যাপক নাসির উদ্দিন ও চৌগাছা উপজেলা আওয়ামী লীগের নির্দেশে তিনি এই কার্যক্রম চালিয়ে যাচ্ছেন। এ সময় তিনি আরো বলেন আজ এখানে আগামীকাল ইউনিয়নের অন্য কোন গ্রামে এভাবেই আমার কার্যক্রম চলবে ইনশাল্লাহ ।

তার এই অভিনব পদ্ধতিতে করোনাকালীন সময় নিজের জীবনকে ঝুঁকি নিয়ে এধরনের গর্বিত কাজ করায় ইউনিয়ন বাসী তাকে ধন্যবাদ জানিয়েছেন।

নওগাঁয় কৃষি পূণর্বাসন ও কৃষি প্রণোদনা

নওগাঁয় কৃষি পূণর্বাসন   ও কৃষি প্রণোদনা


রাজশাহী ব্যুরোঃনওগাঁর আত্রাই উপজেলা কৃষি দপ্তরের আয়োজনে কৃষি পূণর্বাসন ও কৃষি প্রণোদনা কর্মসূচীর আওতায় ৫ হাজার ৭ শত ৮০ জন ক্ষুদ্র ও প্রান্তিক কৃষকের মাঝে বিভিন্ন প্রকার বীজ এবং সার বিতরণ করা হয়েছে। বৃহস্পতিবার সকালে উপজেলা পরিষদ প্রাঙ্গনে ইউএনও মোঃ ছানাউল ইসলাম এর সভাপতিত্বে সার ও বীজ বিতরণ করেন উপজেলা পরিষদ চেয়ারম্যান এবাদুর রহমান প্রামানিক। এসময় কৃষি অফিসার কে এম কাওছার হোসেন,ভাইস চেয়ারম্যান শেখ হাফিজুল ও মমতাজ বেগম, আ'লীগ সাধারণ সম্পাদক চৌধুরী গোলাম মোস্তফা বাদল,আত্রাই প্রেস ক্লাব সভাপতি রুহুল আমীন প্রমুখ উপস্থিত ছিলেন।
জানাযায়,চলতি মৌসুমে কৃষি প্রণোদনা কর্মসূচীর আওতায় উপজেলায় ২ হাজার ৬ শত ৩০ জন ক্ষুদ্র ও প্রান্তিক কৃষকের মাঝে বোরো, গম, সরিষা, চিনাবাদাম, গ্রীস্মঃমুগ, পিঁয়াজ বীজ এবং ডিএপি ও এমওপি সার দেওয়া হয়। সেইসাথে কৃষি পূণর্বাসন কর্মসূচীর আওতায় ক্ষুদ্র ও প্রান্তিক ৩ হাজার ১ শত ৫০ জন কৃষকের মাঝে গম, সূর্যমুখী, চিনাবাদাম, সরিষা, মসুর, খেসারী, টমেটো, মরিচ বীজ এবং ডিএপি ও এমওপি সার দেওয়া হয়।

আরও পড়ুনঃ  খুলনা জেলা প্রশাসনের অনন্য উদ্যোগ...

লোহাগড়া নবগঙ্গা নদীপাড়ের মাটি অবৈধ ভাবে যাচ্ছে ইট-ভাটায়

 লোহাগড়া নবগঙ্গা নদীপাড়ের মাটি অবৈধ ভাবে যাচ্ছে ইট-ভাটায়

মো: আজিজুর বিশ্বাস স্টাফ রিপোর্টার নড়াইল।।নড়াইলের লোহাগড়ার নবগঙ্গা নদীর পাড়ের মাটি অবৈধ ভাবে কেটে নিচ্ছে একটি প্রভাবশালী সিন্ডিকেট । আর এই প্রভাবশালী সিন্ডিকেটের অন্যতম সদস্য হলেন নুর আলম। তার বাড়ি উপজেলার মল্লিকপুর ইউনিয়নের পাচুড়িয়া গ্রামে। নুর অালমের অারেক সহযোগী তার নাম মো: সবুজ,(৪৫)  পিং অা: হক,বাড়ি মল্লিকপুর, এই নুর অালম  এলাকায় হাজি সাহেব নামে পরিচিত। অভিযোগ আছে পানি উন্নয়ন বোর্ডের কর্মকর্তাদের ম্যানেজ করেই এসব মাটি যাচ্ছে উপজেলার অনুমোদন বিহীন বিভিন্ন ইট ভাটায়। ও পুকুর বন্ধের কাজে, আর এই মাটি বিক্রি করে লাখ লাখ টাকা হাতিয়ে নিচ্ছে মাটি খেকো সিন্ডিকেট সদস্যরা। দিনে ও রাতে বিরামহীন ভাবে অপরিকল্পিত মাটি কেটে নেয়ার ফলে নদী ভাঙনের শঙ্কায় রয়েছে নদী তীরবর্তী কয়েক’শত পরিবার। 


শুরুতে স্থানীয়রা বাঁধা দিলেও তা বন্ধ হয়নি। নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক অনেকে বলেছেন ওই জমি অাগে অামরা দখলে ছিলো, এখন নদী কাটার কারনে অামরা সরে গেছি, অার উল্টো হাজী নুর আলম সিন্ডিকেটের লোকজন তাদের স্পস্ট জানিয়ে দেয় পানি উন্নয়ন বোর্ডের অনুমতি নিয়েই নদী পাড়ের মাটি ইট-ভাটায় বিক্রি করা হচ্ছে। 

প্রায় এক মাস ধরে দিনের বেলায় অবৈধ ভাবে শতশত ট্রাকভর্তি মাটি পাচার হলেও নড়াইল পানিউন্নয়ন বোর্ডের কর্মকর্তারা বলছেন তারা কিছুই জানেন না। এ বিষয়ে কথা হয় নড়াইল জেলার দায়িত্বপ্রাপ্ত পানি উন্নয়ন বোর্ডের  ইঞ্জিনিয়ার উজ্জল কুমার সেন এর সাথে। তিনি বলেন, মাটি বিক্রি করার কোন নিয়ম নেই, তবে ধর্মীয় প্রতিষ্ঠান জন্য মাটি দেয়া যায়, অনুমতি সাপেক্ষে। তিন চার মাস অাগে কাজ বন্ধ হয়েছে, এখন তো মাটি দেওয়ার কথা না। তিনি আরো বলেন এইমাত্র রিপোর্ট পেলাম যে অবৈধভাবে কিছু লোক নদীর পাড় কেটে মাটি নিচ্ছে। অামি ওই এলাকায় যে তদন্ত করে দেখবো।

মঙ্গলবার নবগঙ্গা নদীর চর-মল্লিকপুর এলাকায় গিয়ে দেখা যায় কয়েক টি ট্রাকে করে নদী পাড়ের মাটি পাচার করা হচ্ছে। সাংবাদিকদের উপস্থিতি টের পেয়ে ট্রাক রেখে পালিয়ে যায় শ্রমিক এবং চালক। এ সময় কথা হয় মাটি কাটায় নিয়োজিত ভেকু ড্রাইভারদের সাথে। তারা  বলেন, হাজি নুর আলম আমাদের মাটি কাটা বাবদ কন্টাক করে এনেছে। তার কথাতেই মাটি কেটে ট্রাকে লোড করছি।

মাটি কাটা সিন্ডিকেটের অন্যতম সদস্য হাজি নুর আলম বলেন, আমি পানি উন্নয়ন বোর্ডের সাথে কথা বলেছি, তিনি আর ও বলেন, অামি ভেকু- ট্রাকটর  ভাড়া দিয়েছি  অার এই বিষয়ে কিছু জানিনা।

খুলনা জেলা প্রশাসনের অনন্য উদ্যোগ...

খুলনা জেলা প্রশাসনের অনন্য উদ্যোগ...

মাস্ক পরার বিধান অমান্যকারী স্বচ্ছল ব্যক্তিরা নিজ অর্থে মাস্ক বিতরণ করলেন গরীব দুঃখীদের মাঝে।



সিরাজগঞ্জে মাস্ক পরিধান না করায় অর্থদন্ড

সিরাজগঞ্জে  মাস্ক পরিধান না করায় অর্থদন্ড

মাসুদ রানা, সিরাজগঞ্জ জেলা প্রতিনিধিঃ সিরাজগঞ্জে মাস্ক পরিধান না করার কারণে বৃহস্পতিবার  সদর উপজেলার শিয়ালকোল বাজার সংলগ্ন এলাকায় পথচারী, সিএনজি ও অটো রিকশা চালক এবং যাত্রীদেরকে অর্থদন্ড দেয়া হয়। এসময় ১০ জন ব্যক্তিকে মাস্ক পরিধান না করায় বিভিন্ন অংকের সর্বমোট ১২২০ টাকা অর্থদন্ড দেয়া হয়।

এসময় পথচারী, অটো চালক, সিএনজি চালক এবং যাত্রীদের মাঝে ফ্রি মাস্ক বিতরণ করা হয়। এর পাশাপাশি তাদেরকে করোনার ২য় ওয়েভ নিয়ে সচেতন করা হয়।এছাড়াও হেলমেট বিহীন মোটর বাইক চালানোয় চার চালককে বিভিন্ন অংকের সর্বমোট ২৮০০/- অর্থদণ্ড দেয়া হয়। কোভিড-১৯ এর ২য় ওয়েভ মোকাবেলায় মোবাইল কোর্ট পরিচালনা অব্যাহত থাকবে বলে তিনি যানান।এ সময় মোবাইল কোর্টে সহযগীতায় ছিলেন  আনসার বাহিনীর সদস্যগণ উক্ত মোবাইল কোর্টে উপস্থিত ছিলেন।

খুলনা জেলা প্রশাসনের অনন্য উদ্যোগ

খুলনা জেলা প্রশাসনের অনন্য উদ্যোগ

তুহিন রানা (আব্রাহাম), খুলনা নগর প্রতিনিধিঃ করোনা ভাইরাসের সম্ভাব্য দ্বিতীয় ওয়েভ মোকাবেলার জন্য এবং হঠাৎ করেই করোনায় আক্রান্ত হয়ে মৃতের সংখ্যা বেড়ে যাওয়ার প্রেক্ষিতে আজ সুযোগ্য জেলা প্রশাসক ও বিজ্ঞ জেলা ম্যাজিস্ট্রেট, খুলনা জনাব মোহাম্মদ হেলাল হোসেন পিএএ মহোদয়ের নির্দেশে এবং অতিরিক্ত জেলা ম্যাজিস্ট্রেট, খুলনা জনাব মোঃ ইউসুপ আলী মহোদয়ের তত্ত্বাবধানে খুলনা মহানগরীর বিভিন্ন জনসমাগমপূর্ণ স্থানে মাস্ক পরিধান নিশ্চিতকরণে মনিটরিং কার্যক্রম পরিচালিত হয়। এতে নেতৃত্ব প্রদান করেন জেলা প্রশাসনের নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট জনাব দেবাশীষ বসাক।

কর্তব্যরত নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট মাস্ক-বিহীন অসংখ্য মানুষকে চলাফেরা করতে দেখেন। এসব মানুষের কিছু সংখ্যক আর্থিকভাবে স্বচ্ছল অথচ অসচেতনভাবে মাস্ক পরিধান করেন না। কিছু মানুষ আছেন যারা স্বাস্থ্যবিধি মেনে মাস্ক পরিধানের নিমিত্তে নিয়মিত মাস্ক ক্রয়ের ক্ষমতা রাখেন না। এরকম পরিস্থিতিতে জেলা প্রশাসন, খুলনা এক অনন্য উদ্যোগ গ্রহণ করে। 

স্বচ্ছল অথচ মাস্ক পরার বিধান অমান্যকারী ব্যক্তিগণকে জরিমানা আরোপ না করে সেই অর্থে মাস্ক ক্রয় করে গরীব-দুঃখী মানুষকে বিতরণ করতে বলা হয়। আইন অমান্যকারী স্বচ্ছল ব্যক্তিরা নিজ অর্থে মাস্ক ক্রয় করে রিক্সাচালক, দিনমজুর, ভিক্ষুকসহ অসহায় গরীব মানুষকে মাস্ক বিতরণ করেন। 
 

এছাড়াও অপ্রাপ্ত বয়স্ক আইন অমান্যকারীর অভিভাবকদের ফোন করে তার পরিবারের সদস্যদের সচেতন হতে এবং মাস্ক পরিধান ব্যতীত বাড়ির বাইরে বের না হওয়া নিশ্চিত করতে যত্নবান হওয়ার পরামর্শ দেওয়া হয়। অপরদিকে কিছু দোকানে ন্যূনতম স্বাস্থ্যবিধি না মেনে ক্রয়-বিক্রয় করায় দোকান বন্ধের নির্দেশ দেওয়া হয়। এই মনিটরিং কার্যক্রমে সহায়তা করেন দৌলতপুর থানা পুলিশের সদস্যগণ।
 
 
 

মোংলা বন্দরের চারপাশের উন্নয়ন সবকিছুরই অবদান প্রধানমন্ত্রীর...খুলনা সিটি মেয়র

 মোংলা বন্দরের চারপাশের উন্নয়ন সবকিছুরই অবদান প্রধানমন্ত্রীর...খুলনা সিটি মেয়র

মোঃ এরশাদ হোসেন রনি, মোংলাঃ খুলনা সিটি করপোরেশনের মেয়র আলহাজ্ব তালুকদার আব্দুল খালেক বলেছেন, মোংলা বন্দরসহ তার চারপাশে যে উন্নয়ন হয়েছে এবং হচ্ছে তার সবকিছুরই অবদান প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার। তিনিই রাষ্ট্রীয় ক্ষমতায় এসে মোংলা বন্দরকে ঘিরে নানা উন্নয়ন প্রকল্প গ্রহণ ও তা বাস্তবায়ন করেছেন। মোংলা বন্দরের আউটারবারের ড্রেজিং হওয়ার কারণেই এখন বন্দরে সরাসরি বড় বড় জাহাজ আসছে। এছাড়া বন্দর জেটিও জাহাজে পরিপূর্ণ থাকছে। এটা সম্ভব হয়েছে প্রধানমন্ত্রীর স্বদিচ্ছার কারণেই। তিনি আরো বলেন, এ বন্দরকে আরো ব্যস্ততম করার উদ্দেশ্যে তার আমলেই তিনি এখানে ইপিজেড নিমার্ণ করেছেন। বর্তমানে চলছে অর্থনৈতিক অঞ্চলের উন্নয়ন কর্মকান্ডও। পাশাপাশি বন্দরকে অধিকতর গতিশীল করতে মোংলা-রামপালে মাঝামাঝি স্থানে ফয়লায় খান জাহান আলী বিমান বন্দরের কাজও এগিয়ে যাচ্ছে। দ্রুত গতিতে চলছে খুলনা-মোংলা রেল লাইনের কাজও। এছাড়া পদ্মা সেতুতে আর মাত্র তিনটি স্পান বসানো বাকী রয়েছে। বাকী স্পান বসানোর পর এ সেতু চালু হলো এ বন্দরের কর্মচাঞ্চ্যতা আরো বেড়ে যাবে। মোংলা বন্দর দক্ষিণ-পশ্চিমাঞ্চলসহ দেশের অর্থনৈতিক উন্নয়নে ব্যাপক ভূমিকা রাখছে। ভবিষ্যৎতে অর্থনীতিকে আরো বেশি সমৃদ্ধ করবে এ বন্দর। তাই তিনি বন্দর কর্তৃপক্ষসহ সংশ্লিষ্ট ব্যবসায়ী ও শ্রমিক-কর্মচারীদেরকে আন্তরিকভাবে কাজ করার আহবাণ জানান। 

বৃহস্পতিবার দুপুরে মোংলা বন্দর শ্রমিক কল্যাণ চিকিৎসা কেন্দ্রের উদ্বোধনকালে প্রধান অতিথির বক্তৃতায় তিনি এসব কথা বলেন। এর আগে তিনি পৌর শহরের পুরাতন বন্দর এলাকার বিলুপ্ত ডক শ্রমিক পরিচালনা বোর্ড কম্পাউন্ডের ভিতরে শ্রমিক-কর্মচারীদের চিকিৎসার জন্য নির্মিত নতুন চিকিৎসা কেন্দ্রের নাম ফলক উম্মোচন করেন। এ সময় বন্দর কর্তৃপক্ষে চেয়ারম্যান রিয়ার এডমিরাল এম শাহজাহান, পরিচালক (প্রশাসন) গিয়াস উদ্দিন, উপজেলা চেয়ারম্যান আবু তাহের হাওলাদার, মোংলা বন্দর শ্রমিক-কর্মচারী সংঘের সাধারণ সম্পাদক ওমর ফারুক সেন্টু, বন্দর ব্যবহারকারী মশউর রহমানসহ বন্দর সংশ্লিষ্ট অন্যান্য বন্দর ব্যবহারকারী ও ব্যবসায়ী সংগঠনের নেতৃবৃন্দরা উপস্থিত ছিলেন। 

বন্দর কর্তৃপক্ষের চেয়ারম্যান রিয়ার এডমিরাল এম শাহজাহান বলেন, এই চিকিৎসা সেবা কেন্দ্রটি উদ্বোধনের কারণে মোংলা বন্দরে আগত জাহাজের পণ্য বোঝাই ও খালাস কাজে নিয়োজিত শ্রমিক-কর্মচারীরা নিয়মিত চিকিৎসা সেবা পাবেন। বন্দরে কর্মরত শ্রমিকদের দীর্ঘদিনের স্বপ্ন ও চাওয়া ছিল তাদের জন্য এটি হাসপাতালের, শ্রমিক কল্যাণ চিকিৎসা কেন্দ্রটি উদ্বোধনের মধ্যদিয়ে আমরা তাদের সেই প্রত্যাশা ও স্বপ্ন পূরণ করতে পেরেছি। 

উল্লেখ্য, বিগত তত্ত্বাবধায়ক সরকারের আমলে ডক শ্রমিক পরিচালনা বোর্ড বিলুপ্তির পর ২০১০ সাল থেকে বন্ধ থাকে শ্রমিকদের হাসপাতালটিও। শ্রমিক-কর্মচারীদের দাবীর প্রেক্ষিতেই পুনরায় দীর্ঘ প্রায় ১০ বছর পর হলেও আবারো শ্রমিকদের চিকিৎসা সেবার জন্য নতুন এই সেবা কেন্দ্রটি চালু করেছে বন্দর কর্তৃপক্ষ। 



আরও পড়ুনঃ  খুলনা জেলা প্রশাসনের অনন্য উদ্যোগ

নগরীর ষোলশহর এলাকায় দিনব্যাপী বিনা পয়সার বাজার!

নগরীর ষোলশহর এলাকায় দিনব্যাপী বিনা পয়সার বাজার!

রিয়াজুল করিম রিজভী, চট্টগ্রাম ব্যুরো প্রধানঃ ১৭ ই নভেম্বর চট্টগ্রাম নগরীর ষোলশহর এলাকায় ষোলশহর রেলওয়ে স্টেশন এর আসেপাশে অবস্থানরত গরিব অসহায় ও নিম্নমধ্যবিত্ত পরিবারের মাঝে থেকে ১০০০ পরিবার এর একটি তালিকা তৈরি করে। তারা  নির্ধারিত এই এক হাজার পরিবার এর কাছে একটি করে গ্রাহক টিকেট পৌঁছে দেয়।

১৯ ই নভেম্বর বৃহস্পতিবার ষোলশহর রেলস্টেশনে অভিযাত্রিক ফাউন্ডেশন ও এক টাকায় শিক্ষা সংগঠনের যৌথ উদ্যোগে বিনা পয়সার বাজার প্রজেক্টের প্রোগ্রাম পরিচালিত হয়। তারা ৩৫ জন সেচ্চাসেবক নিয়ে সকাল ৬ টা থেকে কাজ করে গিয়েছেন।সকাল ৯ ঘটিকা থেকে তাদের বিনা পয়সার বাজার প্রজেক্ট এর সবজি বিতরণ শুরু করেন।
ধারাবাহিক ভাবে সামাজিক দূরত্ব বজায় রেখেই তারা তাদের উক্ত কার্যকম চালিয়ে যান। উক্ত কার্যকম এ তারা মোট ১০০০ পরিবার এর মাঝেই সবজি গুলো বিতরণ করেন। অভিযাত্রীক ফাউন্ডেশন এর সদস্যদের সাথে কথা বলে যানা যায়।তারা এই বিনা পয়সার বাজার প্রজেক্টি দীর্ঘ সময় ধরে পরিচালনা করে আসছেন।
 
 

৩ হাজার পিস ইয়াবাসহ মাদক কারবারি গ্রেফতার

৩ হাজার  পিস ইয়াবাসহ মাদক কারবারি গ্রেফতার

সেলিম চৌধুরী, স্টাফ রিপোর্টারঃ-  মাদকদ্রব্য অধিদপ্তর কর্মকর্তা গোপন সংবাদের ভিত্তিতে চট্টগ্রাম জেলার  (খ সার্কেল)  উপপরিচালক জনাব হুমায়ুন কবির খন্দকার এর সার্বিক তত্ত্বাবধানে এবং পরিদর্শক জনাব সাইফুল ইসলাম এর নেতৃত্বে  মাদকদ্রব্য নিয়ন্ত্রণ অধিদপ্তর, জেলা কার্যালয়, চট্টগ্রাম খ-সার্কেল (পটিয়া) এর একটি টিম ৩,০০০ (তিন হাজার) পিস ইয়াবা সহ আসামী- করিম (২০) আটক করেছে।
 
তার  পিতা- মোঃ আমিন প্রঃ কালা মিয়া, মাতা- আমিনা খাতুন, সাং- বড়ডিল (কালা মিয়ার বাড়ি), ওয়ার্ড নং-০৮, ০৫ নং বাহার ছড়া ইউনিয়ন পরিষদ, থানাঃ টেকনাফ, জেলা-কক্সবাজার কে চট্টগ্রাম - কক্সবাজার  মহাসড়কের চন্দনাইশ থানাধীন বি জি সি ট্রাস্ট মেডিকেল কলেজের সামনে পাচারকালীন সময় চট্টগ্রাম অভিমুখী মার্সা বাসে থাকা আসামীর দেহ তল্লাশীপূর্বক ইয়াবা জব্দ করতঃ সংরক্ষণ ও বহনের অপরাধে সকাল প্রায় সাড়ে   ঘটিকার সময়   আটক করে চন্দনাইশে মাদকদ্রব্য নিয়ন্ত্রণ আইন - ২০১৮ অনুযায়ী নিয়মিত মামলা দায়ের করা হয়। ইতি পূর্বে আসামী একাধিক বার ইয়াবা একইভাবে পাচার করেছে বলে প্রাথমিকভাবে স্বীকার করে।

দিনাজপুরে ফায়ার সার্ভিস ও সিভিল ডিফেন্স সপ্তাহের উদ্বোধন

দিনাজপুরে ফায়ার সার্ভিস ও সিভিল ডিফেন্স সপ্তাহের উদ্বোধন

মামুনুর রশিদ, দিনাজপুর প্রতিনিধিঃ "প্রশিক্ষণ পরিকল্পনা প্রস্তুতি, দূর্যোগ মোকাবিলায় আনবে গতি" এই প্রতিপাদ্যকে সামনে রেখে দিনাজপুরে ফায়ার সার্ভিস ও সিভিল ডিফেন্স সপ্তাহের উদ্বোধন করা হয়। আজ সকালে ফায়ার সার্ভিস ও সিভিল ডিফেন্স স্টেশন চত্ত্বরে তিনদিন ব্যাপী বিভিন্ন কর্মসূচীর উদ্বোধন করেন জেলা প্রশাসক মাহমুদুল আলম।
 
এসময় আরো উপস্থিত ছিলেন সহকারী পরিচালক আনিসুর রহমান। উদ্বোধন শেষে একটি যান্ত্রিক শোভাযাত্রা ফায়ার স্টেশন থেকে বের করা হয়। আজ থেকে তিন দিন ব্যাপী এই কর্মসূচীতে অগ্নি প্রতিরোধ সম্পর্কে মাইকযোগে প্রচার অভিযান, বিভিন্ন প্রতিষ্ঠান-স্থাপনায় অগ্নি প্রতিরোধ ব্যবস্থা পরিদর্শন, পরামর্শ প্রদান, লিফলেট বিতরণসহ নানা কার্যক্রম পরিচালনা করা হবে।

কি দোষ ছিলো মাগো আমার? -মোঃ ফিরোজ খান

কি দোষ ছিলো মাগো আমার? -মোঃ ফিরোজ খান

অল্প সময়ের আবেগ মাগো
ক্ষণিক সময়ের সুখ,
এ কেমন বিচার তোমার মাগো
দেখতে দাওনি পৃথিবীর মুখ।
-
আমার ইচ্ছে আসিনি মাগো
তোর পেটেতে আমি,
পৃথিবীতে নাকি সবার চেয়ে
সন্তান মায়ের কাছে দামী?
-
সুখের জন্য বিবেক ভুলে
তোমার বুকে ঠাঁই দিলে,
আনন্দের শেষে হেসে খেলে
কেটে ছিড়ে ফেলে দিলে।
-
পরিশেষে একদিন তুমি
আসবে মাগো আমার কাছে,
তখন তুমি আল্লাহর কাছে
ভেবে রাখো কি বলবে?
-
মরে গিয়ে আমি বেঁচে গেছি
বাচিয়েছি মাগো তোর মান,
থাকতাম যদি পৃথিবীতে বেঁচে
পরিচয় হতাম অবৈধ সন্তান।
-
পতিতা হয়ে সুখ পেতে
কেনো আমায় পেটে নিলে?
কলঙ্কের ভয়ে অবশেষে
মাগো আমায় ডাস্টবিনে ফেললে।
-
তোমার সঙ্গে তোমার মাও
করতো যদি এমন,
বুঝতে পারতে সেদিন মাগো
মৃত্যু যন্ত্রণা হয় কেমন?
-
তবুও মাগো তোমার জন্য
আল্লাহর কাছে চাইবো দোয়া
হাশরের মাঠে তোমার যেনো
আগুনের না লাগে ছোঁয়া।
 
 

দুধের মাছি লেখক, আবুল খায়ের শিকারী (কুয়েত প্রবাসি)

দুধের মাছি   লেখক, আবুল খায়ের শিকারী (কুয়েত প্রবাসি)

নই কো কবি ছবির মতো

ভাষার যতন নাই প্রাণে,
এলোমেলো শব্দ বোমায়
আঘাত করি পাষান মনে!

ছন্নছাড়া বন্য যারা
ইতিহাস খায় চিঁবিয়ে,
বিরহী জন বিপ্লবী তাই
অগ্নিবেড়ি দেই দাবিয়ে।

দুধের মাছি উরছে কতো
ঘুরছে মাখন আহরণে,
আপন বলয় রিক্ত করে
নিচ্ছে সবই উলুবনে!

বড় বড় ডিগ্রিধারি
পন্ডিত যতো বেহুদা,
নামাজ-রোজায় পরিপাটি
বর্বরতায় নয় জুদা!

মিশ্রির ছুরি দুর্জনেরা
মধুর কথায় দিচ্ছে ফাঁকি,
ধুরিবাজি রুদ্ধ করি
বজ্র হাতে হীন চালাকি।

চলছে কলম অস্ত্র হয়ে
খুলতে মোখস মাফিয়ার,
ঘাড়ের উপর চেপে বসা
রোবট সেই সুফিয়ার!

নর্দমাতে বসত ওদের
সুগন্ধিতে হয় না কাজ,
নম:নম: করে চলছে
নাক কাটা সব দলবাজ!

মুচলেকাতে আটকানো সব
জাতির জন্য হৃতকর,
দালালেরা দালালিতে
দেশ-দশের নাই খবর!

উদর পিন্ডি বোধর ঘাড়ে
মিডিয়া তাই খুব গরম,
বন্ধু দেশের কু-কর্ম সব
প্রকাশিতে পায় শরম!

প্রতিজ্ঞাতে প্রেমিক হৃদয়
রুখতে সকল হায়না,
শিকার করবে শিকারী জন
দেশমাতার এই বায়না।

কবি'র কবি রবি সম
রাঙা অরুণ জগত ব্যোমে
বুক ফাটা ঐ খা খা রোদে
স্নিগ্ধ ধারা নামাই প্রেমো।
 
 

নাতি সহ দুই শিশুকে ধর্ষণে গ্রেফতার দাদা

 নাতি সহ দুই শিশুকে ধর্ষণে গ্রেফতার দাদা

সিপন, নারায়ণগঞ্জঃ নারায়ণগঞ্জ সিটিকর্পোরেসনের  সিদ্ধিরগঞ্জে আপন নাতনিসহ দুই শিশুকে ধর্ষণের আনিত অভিযোগে কামাল হোসেন (৭০) নামে এক বৃদ্ধকে আটক করেছে পুলিশ।সিদ্ধিরগঞ্জের জালকুড়ি এলাকা থেকে তাকে আটক করা হয়। এ ঘটনায় বুধবার (১৮ নভেম্বর) সকালে অভিযুক্ত কামাল হোসেনের ছেলে বাদী হয়ে থানায় মামলা করেন।

পরিবারের বরাত দিয়ে পুলিশ জানায়, মঙ্গলবার সন্ধ্যায় চকলেট খাওয়ানোর প্রলোভন দেখিয়ে কামাল হোসেন আপন নাতনি ও প্রতিবেশী আরেক শিশুকে ডেকে নিয়ে ধর্ষণ করেন। এতে দুই শিশু অসুস্থ হয়ে পড়লে তাদের হাসপাতালে ভর্তি করা হয়। পরে তারা বিষয়টি খুলে বললে পরিবারের লোকজন কামাল হোসেনকে আটক করে পুলিশে দেয়।

এ বিষয়ে সিদ্ধিরগঞ্জ থানা পুলিশের উপপরিদর্শক (এসআই) কাজল মজুমদার বলেন, খবর পেয়ে ঘটনাস্থলে গিয়ে অভিযুক্ত কামাল হোসেনকে আটক করা হয়। মামলা দায়েরের পর তাকে আদালতে পাঠানো হয়েছে। ভুক্তভোগী দুই শিশুকে মেডিকেল পরীক্ষার জন্য হাসপাতালে পাঠানো হয়েছে।



আরও পড়ুনঃ ধর্মীয় চর্চা মানুষের মনকে পরিশুদ্ধ করে: রেজাউল করিম চৌধুরী