কেশবপুরে পুলিশ কর্মকর্তা-সহ ৩ জন করোনা ভাইরাসে আক্রান্ত

কেশবপুরে পুলিশ কর্মকর্তা-সহ ৩ জন করোনা ভাইরাসে আক্রান্ত




মোরশেদ আলম 
যশোর ভ্রাম্যমাণ প্রতিনিধি। 

যশোর কেশবপুরে নতুন করে একজন পুলিশ কর্মকর্তা সহ ৩ জনের করোনা শনাক্ত হয়েছে। 

বৃহস্পতিবার কেশবপুর উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সের আরএমও জাহিদুল ইসলাম এ তথ্য নিশ্চিত করেন।

আক্রন্তরা হলেন থানার একজন পুলিশ কর্মকর্তা, সাতবাড়িয়া  গ্রামের একজন মহিলা ও পৌরশহরে ১নং ওয়ার্ডে বসবাসকারী একজন রিপ্রেজেনটেটিভ। 

এ নিয়ে কেশবপুরে বর্তমানে মোট আক্রান্তের সংখ্যা দাঁড়ালো ১২ জন। আক্রান্তদের আইসোলেশনে রাখা হয়েছে। এদিকে কেশবপুর পৌরসভার ১নং ওয়ার্ড-কে রেড জোন ঘোষণা করা হয়েছে। বর্তমানে ঐ ওয়ার্ডে আক্রান্ত হলেন ৭ জন। ইতিপূর্বে কেশবপুরে ১৩ জন করোনায় আক্রান্ত হয়েছিলো, যারা সকলে সুস্থ্য হয়ে বাড়ি ফিরে গেছেন।

করোনা কালীন সময়ে লেখা পড়া এখন দৈনিক কপোতাক্ষ নিউজে

করোনা কালীন সময়ে লেখা পড়া এখন দৈনিক কপোতাক্ষ নিউজে



দেশের করোনার মহামারির মধ্যে কোমলমতি ছাত্র -ছাত্রীদের কথা চিন্তা করে দৈনিক কপোতাক্ষ নিউজের নিয়মিত আয়োজন।
আজকের বিষয় উচ্চ মাধ্যমিক হিসাববিজ্ঞান প্রথম পত্রের হিসাব(Account)।
অধ্যায় তিন

হিসাবের অর্থ ও সংজ্ঞা
Meaning and Definition of an  Account.
হিসাবরক্ষণের নিয়মানুযায়ী উপযুক্ত শিরোনামের অধীনে সাজানো কোন ব্যক্তি, প্রতিষ্ঠান, সম্পত্তি,আয় বা ব্যয়- সংক্রান্ত লেনদেনগুলোর প্রকৃতি বা সত্তা বিশ্লেষণ করে যখন হিসাবের বইতে সংক্ষেপে লিপিবদ্ধ করা হয়,তাকে হিসাব বা হিসাব খাত বলে।যেমন - আখি হিসাব, এন বি আর ব্যাংক হিসাব,এস এম হাবিব কলেজ হিসাব, বেতন হিসাব, আসবাবপত্র হিসাব  ইত্যাদি।

প্রত্যেক লেনদেনের দুটি পক্ষ থাকে,ডেবিট পক্ষ এবং ক্রেডিট পক্ষ। লেনদেনসমূহকে পৃথক পৃথক শিরোনামের অধীনে সাজানো হয় এবং ডেবিট ও ক্রেডিট এ বিশ্লেষণ করে লিপিবদ্ধ করা হয়।সাধারণত লেজার - এর একেকটি পাতায় একেকটি হিসাব লেখা হয়। প্রতি হিসাবের বাম দিকে ডেবিট এবং ডান দিকে ক্রেডিট লেখা হয়। প্রত্যেক ঘরকে আবার তারিক,বিবারন,জাঃপৃঃ ও টাকার পরিমাণ - এ চার ঘরে  ভাগ করা হয়।নিদিষ্ট সময়ান্তে উভয় দিকের পার্থক্য নির্ণয় করে Balance বা জের নির্ণয় করা হয়।

২। হিসাবের শ্রেণীবিভাগ  Classification of Accounts
দু' তরফা দখিলা পদ্ধতি মোতাবেক হিসাবের ডেবিট ও ক্রেডিট সঠিকভাবে নির্ণয় করতে হলে হিসাবের শ্রেণীবিভাগ সম্পর্কে বিস্তারিতভাবে অবহিতি হওয়া প্রয়োজন। হিসাবের শ্রেণীবিভাগের ক্ষেত্রে সাধারণত দুটি পদ্ধতি বিরাজমান। যথা-
ক) সনাতন পদ্ধতি বা প্রচলিত পদ্ধতি ( Traditional Method)
খ)  আধুনিক পদ্ধতি বা সমীকরণ পদ্ধতি (Modern Method or Equation Method)
সনাতন পদ্ধতি ( Traditional Method) 
সনাতন পদ্ধতিতে হিসাবকে প্রধানত দু' ভাগে ভাগ করা যায়। যথা- ১। ব্যক্তিবাচক হিসাব ( personal Account) : ক।দেনাদার হিসাব (Debtors Account)  খ।পাওনাদার হিসাব ( Creditors Account)
২। অব্যক্তিবাচক হিসাব ( Impersonal Account) : ক।সম্পত্তিবাচক হিসাব খ।নামিক হিসাব বা আয়-ব্যয় বাচক হিসাব।
আয়-ব্যয়  বাচক হিসাবকে আবার দুই ভাগে ভাগ করা যায় ১.ব্যয়সংক্রান্ত হিসাব  ২. আয়সংক্রান্ত হিসাব।
আধুনিক পদ্ধতি বা সমীকরণ পদ্ধতি ( Modern Method or Equation Method)   আধুনিক হিসাবশাস্তবিদগন হিসাব সমীকরণের আলোকে হিসাবের শ্রেণীবিভাগ করার প্রয়াস পেয়েছে।হিসাব সমীকরণ হল কোন ব্যবসায় প্রতিষ্ঠানের আর্থিক অবস্থার  অর্থাৎ সম্পত্তি দায় ও স্বত্বাধিকারের সমন্বিত রূপ।মৌলিক হিসাব সমীকরণ হলঃ A= L+ P or, A=L+P ( Capital + Income - Expenses)  or,A=L+ ( Capital + Income - Expenses)  
এখানে
A= Assets    বা সম্পত্তি
L=  Liabilities বা দায়( বহিঃ দায়)
p= Proprietorship  বা  মালিকানাস্বত্ব
মালিকানাস্বত্ব= মূলধন + আয়- ব্যয়- উত্তোলন
Proprietorship = Capital+ Income -Expenses - Drawing
( চলমান)

মোঃ সবুজ হোসেন
প্রভাষক হিসাববিজ্ঞান বিভাগ গঙ্গানন্দপুর ডিগ্রি কলেজ ঝিকরগাছা, যশোর।


দক্ষতার সহিত দায়িত্ব পালন করায় ভূমি মন্ত্রনালয় সচিবের পক্ষ থেকে শুভেচ্ছায় সিক্ত হলেন মধুপুরের এ্যাসিল্যান্ড এম.এ.করিম

দক্ষতার সহিত দায়িত্ব পালন করায় ভূমি মন্ত্রনালয়  সচিবের পক্ষ থেকে শুভেচ্ছায় সিক্ত হলেন মধুপুরের এ্যাসিল্যান্ড এম.এ.করিম





মো: আ: হামিদ মধুপুর টাঙ্গাইল প্রতিনিধিঃ

করোনাকালীন সময়ে দক্ষতার সহিত দায়িত্ব পালনের জন্য ভূমি মন্ত্রনালয়ের সচিবের পক্ষ থেকে শুভেচ্ছায় সিক্ত হলেন টাঙ্গাইল জেলার মধুপুর উপজেলা  সহকারী কমিশনার (ভূমি) এম. এ করিম।
বাংলাদেশে করোনা ভাইরাসের প্রথম রোগী শনাক্ত হয় ৮মার্চ। এরপর থেকে  করোনা ভাইরাস প্রাদুর্ভাব বেড়েই চলেছে। এ ভাইরাসের  পূর্ব থেকেই মাঠ পর্যায়ে সংক্রামণ প্রতিরোধে অকুতোভয় সম্মুখ যোদ্ধা হিসাবে দায়িত্ব পালন করে যাওয়ায় টাঙ্গাইলের মধুপুর  উপজেলার সহকারী কমিশনার (ভূমি) এম. এ করিম কে ধন্যবাদ জানিয়ে চিঠি দিয়েছেন ভূমি সচিব মো. মাকছুদুর রহমান পাটওয়ারী।
ভূমি মন্ত্রণালয়ের সচিব গত ১০ জুন সহকারী কমিশনার ভূমিকে এই অভিনন্দন জানান।
চিঠিতে এ্যাসিল্যান্ডকে উদ্দেশ্য করে সচিব বলেন, আপনি জেলা প্রশাসক এবং উপজেলা নির্বাহী অফিসারের নির্দেশনায় জনপ্রতিনিধি, সশস্ত্র বাহিনী, পুলিশ বিভাগ, স্বাস্থ্য বিভাগ ও নাগরিকদের সহায়তায় করোনা ভাইরাসের বিরুদ্ধে অবিরাম, অন্তহীন গতিতে, জীবন বাজি রেখে যে ত্যাগ স্বীকার করেছেন তা এক অনন্য ও অনুকরণীয় দৃষ্টান্ত। ভূমি রাজস্ব প্রশাসনে আপনার আওতাধীন কানুনগো, সার্ভেয়ার, ইউনিয়ন ভূমি সহকারী/উপ সহকারী কর্মকর্তা, আপনার দপ্তরের অন্যান্য কর্মচারীসহ অহোরাত্র করোনা ভাইরাস বিস্তার রোধে সামাজিক দুরত্ব নিশ্চিতকরণ, গণসচেতনতা সৃষ্টি, অসহায় ও সঙ্কটাপন্ন মানুষের ঘরে-ঘরে মানবিক সহায়তা ও ত্রাণ পৌঁছে দেয়া, নিত্য প্রয়োজনীয় পণ্যের বাজার দর নিয়ন্ত্রণ, মোবাইল কোর্ট পরিচালনাসহ বহুমুখী কার্যক্রম পরিচালনা করেছেন।
চিঠিতে এ্যাসিল্যান্ডকে আরও লেখা হয়, মহান মুক্তিযুদ্ধের চেতনাকে ধারণ করে অবিশ্রান্ত ঝর্ণাধারার মতো আপনি কর্মচঞ্চল। আপনার প্রত্যুৎপন্নমতিত্বের নিকট নিত্য নতুন সমস্যার তাৎক্ষণিক ও সহজ সমাধান সত্যিই বিস্ময়কর। নিজের পরিবার পরিজনের মূল্যবান জীবনের দিকে না তাকিয়ে , মৃত্যুঝুঁকি নিয়ে কেবল জনগনের সেবা মানবতা ও মহানুভবতার পরিচয় দিয়ে অনন্য উদাহারণ সৃষ্টি করায় এ্যাসিল্যান্ডকে ধন্যবাদ ও অভিনন্দন জানানো হয়।
উপজেলা সহকারী কমিশনার (ভূমি) গত ১২ডিসেম্বরে যোগদান করে করোনা ভাইরাস বিস্তার রোধে সামাজিক দুরত্ব নিশ্চিতকরণ, গণসচেতনতা সৃষ্টি, অসহায় ও সঙ্কটাপন্ন মানুষের ঘরে-ঘরে মানবিক সহায়তা ও ত্রাণ পৌঁছে দেয়া, নিত্য প্রয়োজনীয় পণ্যের বাজার দর নিয়ন্ত্রণ, সরকারী নির্দেশনা অমান্য ও স্বাস্থ্যবিধি মেনে না চলায় ৫১টি মোবাইল কোর্ট পরিচালনার  মাধ্যমে ১৩৩ মামলায় ব্যক্তি ও বিভিন্ন প্রতিষ্ঠানকে প্রায় ৫ লক্ষ ৬০ হাজার ৪০০টাকা জরিমানা আদায় সহ বহুমুখী কার্যক্রম পরিচালনা করেছেন। এছাড়া বিদেশফেরতদের ও করোনা রোগীদের হোম কোয়ারান্টাইন নিশ্চিত করতে ছুটে বেড়িয়েছেন উপজেলার এক প্রান্ত থেকে অপর প্রান্তে। উপজেলাবাসীকে করোনামুক্ত পরিবেশে আনয়নের লক্ষ্যে তার অবিরাম, অন্তহীন গতিতে, জীবন বাজি রেখে ছুটে চলা এবং যে ত্যাগ স্বীকার তা অত্যন্ত প্রশংসনীয়। ভবিষ্যতে এ ধারা অব্যাহত থাকবে।।

চৌহালীতে বিশ্ব পরিবেশ দিবস উপলক্ষে ইশা ছাত্র আন্দোলনের বৃক্ষরোপন কর্মসূচি পালিত

চৌহালীতে বিশ্ব পরিবেশ দিবস উপলক্ষে ইশা ছাত্র আন্দোলনের বৃক্ষরোপন কর্মসূচি পালিত





ডা.এম.এ.মান্নান,টাংগাইল জেলা প্রতিনিধি:বিশ্ব পরিবেশ দিবস ২০২০ উপলক্ষে  ইসলামী শাসনতন্ত্র ছাত্র আন্দোলন চৌহালী উপজেলা শাখার উদ্যোগে উপজেলা সংগ্রামী সভাপতি, মেধাবী ছাত্রনেতা এম.এম.হাসান জামিল জাফরীর নেতৃত্বে বৃক্ষরোপণ কর্মসূচি পালন করা হয়।

আজ বৃহস্পতিবার ১৮ জুন ২০২০ খ্রি.চৌহালী উপজেলা বিভিন্ন জায়গায় এই বৃক্ষরোপন কর্মসৃচী পালন করা হয়েছে। 

বৃক্ষরোপন কর্মসৃচী রোপন কালে চৌহালী উপজেলা সভাপতি, মেধাবী ছাত্রনেতা এম.এম.হাসান জামিল জাফরি বলেন, ইসলামী শাসনতন্ত্র ছাত্র আন্দোলন শুধু একটি ছাত্র রাজনৈতিক সংগঠনের নামই নয় বরং একটি জনকল্যাণ ও মানবতাবাদী ছাত্র সংগঠন।এই সংগঠনটি দেশের মাটি ও মানুষের জন্য নিরলসভাবে কাজ করে যাচ্ছে তারই অংশ হিসাবে কেন্দ্রীয় ঘোষিত  কর্মসৃচীর আলোকে আজ পরিবেশ ও প্রাকৃতিক সুন্দর্যের অবক্ষয় রোধে বৃক্ষরোপন কর্মসূচী পালন করছি।তিনি আরও বলেন- আমাদের প্রিয় ছাত্র সংগঠনটি চৌহালী উপজেলার সকল স্তরের মানুষের কাছে জনপ্রিয়তা ও মানবতা সংগঠন হিসাবে পরিচিতি লাভ করছে কারন রমজানে  ইফতার মাহফিল, ইউনিয়ন কমিটি গঠন, এসএসসি ও দাখিল সমমান পরীক্ষায় উত্তীর্ণদের সংবর্ধনা দেওয়াসহ দৃশ্যমান কার্যক্রম পরিচালিত  করছি। আমাদের এই কার্যক্রম দিন দিন মানুষের মনের মধ্যে এ সংগঠনটি ভালোবাসা বৃদ্ধি পাচ্ছে।

বৃক্ষরোপন কর্মসৃচীতে আরও উপস্হিতি ছিলেন চৌহালী উপজেলা শাখার বিভিন্ন ইউনিটের নেত্ববৃন্দ।

কুৃমিল্লা ময়নামতি হাইওয়ে পুলিশ মহাসড়কে চাঁদাবাজি বন্ধে কঠোর ভুমিকায়

কুৃমিল্লা ময়নামতি হাইওয়ে পুলিশ মহাসড়কে চাঁদাবাজি বন্ধে কঠোর ভুমিকায়






মো: রবিউল হো: সবুজ, (কুমিল্লা প্রতিনিধি) 
করোনা যুদ্ধে সামিল কুমিল্লার ময়নামতি হাইওয়ে পুলিশ সড়ক মহাসড়কে চালক, যাত্রী ও পথচারীদের সচেতনতা বৃদ্ধিতে নিরলস কাজ করে যাচ্ছে। সড়ক মহাসড়কের যাত্রা পথে চলাচলে বৈশ্ব্যিক মহামারী করোনার হাত থেকে রক্ষা পেতে করনীয় দিক নির্দেশনামূলক লিফলেট বিতরণ, যাত্রী ও চালকদের নিরাপদ থাকার নানা কৌশল অবগত করা সহ জনসচেতনতায় মাইকিং করে যাচ্ছেন। এছাড়াও সম্প্রতি আইজিপি'র নির্দেশনার পর সড়কে সকল প্রকার চাঁদাবাজি, দুর্ঘটনা ও বিশৃঙ্খলা রোধে কঠোর পদক্ষেপ গ্রহণ করেছে ময়নামতি হাইওয়ে ক্রসিং থানা পুলিশ। ইতিমধ্যেই স্থানীয় পরিবহণ মালিক ও শ্রমিক সংগঠনের নেতাদের সাথে একাধিকবার বৈঠক করে পরিবহণ ও সড়কে সকল প্রকার অবৈধ চাঁদাবাজি বন্ধের বিষয়ে কঠোর সিদ্ধান্তের বিষয়ে অবগত করা হয়েছে বলে জানা গেছে। যাত্রী হয়রানি ও ভোগান্তি রুখতে মহাসড়কগুলোতে আরো জোরদার করা হয়েছে হাইওয়ে পুলিশের ট্রহল। 

কভিড ১৯ মোকাবেলা ও সড়ক পরিবহণে চাঁদাবাজি বন্ধে গৃহীত নানা পদক্ষেপের বিষয়ে ময়নামতি হাইওয়ে থানা পুলিশের পরিদর্শক সাফায়েত হোসেন বলেন, প্রাণঘাতী ভাইরাস মোকাবেলায় বাংলাদেশ সহ সারা বিশ্বই এক কঠিন সময় অতিক্রম করছে। মহাসড়কে যানবাহন চলাচল নিরবচ্ছিন্ন রাখতে নানামুখী পদক্ষেপ নিয়েছে ময়নামতি হাইওয়ে ক্রসিং থানা পুলিশ। জেলা হাইওয়ে পুলিশ সুপার নজরুল ইসলাম স্যারের সার্বিক নির্দেশনায় প্রতিদিনই মহাসড়কের বিভিন্ন স্পষ্টে চালক যাত্রী ও পথচারীদের ভাইরাস মোকাবেলায় সচেতনতা বৃদ্ধিতে বিভিন্ন পরিবহণে সচেতনতামূলক স্টিকার, লিফলেট বিতরণ ও স্বাস্থ্য বিধি মেনে চলাচল করতে বিভিন্ন নির্দেশনা দেয়া হচ্ছে। মহাসড়কে অতিরিক্ত যাত্রী বহন, থ্রি হুইলার ও ফিটনেসবিহীন গাড়ি সহ সকল প্রকার অবৈধ পরিবহণ চলাচল বন্ধে মাইকিং সহ সার্বক্ষণিক ট্রহল অব্যাহত রয়েছে। তিনি আরো জানান, ময়নামতি মহাসড়ক এলাকায় পরিবহণে কোন প্রকার চাঁদাবাজি করতে দেয়া হবে না। কেউ এধরণের কাজে জড়িত থাকলে তাদের বিরুদ্ধে কঠোর আইনানুগ ব্যবস্থা নেয়া হবে। বাস, ট্রাক সহ বিভিন্ন পরিবহণ মালিক শ্রমিক সংগঠনের নেতাদের সাথে এবিষয়ে আলোচনা হয়েছে। এছাড়া বরাবরের মতই মহাসড়কে অবৈধ পণ্য পরিবহণে নজরদারি, দুর্ঘটনা রোধে চালকদের ডোপ টেষ্ট, স্পিড মিটার সহ নতুন প্রযুক্তির ব্যবহার অব্যাহত রয়েছে। করোনা মহামারী কিংবা যে কোন পরিস্থিতিতে ময়নামতি হাইওয়ে ক্রসিং থানা পুলিশ সার্বক্ষণিক দেশ ও জনতার কল্যাণে নিয়োজিত রয়েছে।

চুয়াডাঙ্গার জীবননগরে স্বামীর মোটরসাইকেল থেকে পড়ে স্ত্রী নিহত

চুয়াডাঙ্গার জীবননগরে স্বামীর মোটরসাইকেল থেকে পড়ে স্ত্রী নিহত





রফিকুল,জিবননগর, চুয়াডাঙ্গাঃ আজ বৃহস্পতিবার ( ১৮ জুন)চুয়াডাঙ্গার জীবননগর উপজেলার সন্তোষপুর বাসষ্ট্যাণ্ড এলাকায় স্বামীর মোটরসাইকেল থেকে পড়ে এক নারী নিহত হয়েছেন। নিহত নারীর নাম রত্না বেগম (২২)। তিনি একই উপজেলার আন্দুলবাড়িয়া ইউনিয়নের অনন্তপুর গ্রামের রোকনুজ্জামানের স্ত্রী। বৃহস্পতিবার (১৮ জুন) দুপুর ১২ টার দিকে এই ঘটনা ঘটে।


ঘটনার বিবরণ সূত্রে জানা যায়,অনন্তপুর গ্রামের রোকনুজ্জামান তার অসুস্থ স্ত্রী রত্না বেগমকে নিয়ে জীবননগরে ডাক্তারের কাছে যাচ্ছিলেন। পথিমধ্যে সন্তোষপুর বাসষ্ট্যাণ্ড এলাকায় পৌঁছালে তার স্ত্রী রত্না বেগম মোটরসাইকেলের পেছন থেকে রাস্তায় পড়ে গুরুতর আহত হন।


তাকে উদ্ধার করে প্রথমে জীবননগর উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে এবং পরবর্তীতে চুয়াডাঙ্গা সদর হাসপাতালে ভর্তি করা হয়। সেখানে কর্তব্যরত চিকিৎসক তাকে মৃত ঘোষণা করেন।


বিষয়টি তদন্ত করে নিশ্চিত করেছেন জীবননগর থানার অফিসার ইনচার্জ মোঃ সাইফুল ইসলাম।

আশাশুনি সদরে বিএনপি’র খাদ্য সামগ্রী বিতরণ

আশাশুনি সদরে বিএনপি’র খাদ্য  সামগ্রী বিতরণ





 আহসান উল্লাহ বাবলু, আশাশুনি, (সাতক্ষীরা) প্রতিনিধিঃআশাশুনি সদরে ঘূর্ণিঝড় আম্ফানে ক্ষতিগ্রস্ত পরিবারের মাঝে খাদ্য সামগ্রী বিতরণ করা হয়েছে। বৃহস্পতিবার সকাল ১০ টায় আশাশুনি হাফিজিয়া মাদরাসা ময়দানে এ বিতরণ অনুষ্ঠানের আয়োজন করা হয়। 

বিএনপির ভারপ্রাপ্ত চেয়ারম্যান তারেক রহমানের আর্থিক সহায়তায় আশাশুনি সদর ইউনিয়নের ক্ষতিগ্রস্থ অসহায় ১১৫ পরিবারের মাঝে খাদ্য সামগ্রী বিতরণ করা হয়। সাতক্ষীরা জেলা বিএনপির আয়োজনে খাদ্য সামগ্রী বিতরণ করেন, জেলা বিএনপির যুগ্ম আহবায়ক, জেলা যুবদলের সাবেক সভাপতি ও কেন্দ্রীয় যুবদলের সাবেক শিক্ষা বিষয়ক সম্পাদক অধ্যাপক মোদাচ্ছেরুল হক হুদা। এ সময় আশাশুনি উপজেলা বিএনপির সাধারণ সম্পাদক মো. রুহুল কুদ্দুস, যুব বিষয়ক সম্পাদক মশিউল হুদা তুহিন, সদর ইউনিয়ন বিএনপির সাধারণ সম্পাদক আব্দুল আলিম, আনুলিয়া ইউনিয়ন বিএনপির সাধারণ সম্পাদক শওকত হোসেন, উপজেলা বিএনপির সহ-সাংগঠনিক সম্পাদক হাফিজুল ইসলাম, উপজেলা যুবদলের সভাপতি জাকির হোসেন বাবু, সাধারণ সম্পাদক খালেদুজ্জামান টিপু, উপজেলা মৎস্যজীবীদলের সভাপতি সাদিক আনোয়ার ছট্টু, উপজেলা শ্রমিকদলের সাংগঠনিক সম্পাদক মোহাম্মদ হোসেন, উপজেলা বিএনপির ছাত্রবিষয়ক সম্পাদক মিজানুর রহমান, উপজেলা স্বেচ্ছাসেবকদলের সভাপতি শাহরিয়ার জামানসহ বিএনপি ও সকল অঙ্গসংগঠনের নেতৃবৃন্দ উপস্থিত ছিলেন।

প্রতাপনগরে ৪ টি ওয়ার্ডের জেলেদের মাঝে চাল বিতরণ

প্রতাপনগরে ৪ টি ওয়ার্ডের জেলেদের মাঝে চাল বিতরণ





 আহসান উল্লাহ বাবলু, আশাশুনি, (সাতক্ষীরা) প্রতিনিধিঃ আশাশুনি উপজেলার প্রতাপনগর ইউনিয়নের ৪টি ওয়ার্ডের নিবন্ধিত জেলেদের মাঝে ভিজিএফ এর চাল বিতরণ করা হয়েছে। বৃহস্পতিবার সকাল ৮ টায় ইউনিয়ন পরিষদ চত্বরে এ চাল বিতরণ উদ্বোধন করা হয়। সাতক্ষীরা জেলা প্রশাসক এস এম মোস্তফা কামালের তত্ত্বাবধানে সমুদ্রে মৎস্য আহরণে বিরত থাকা জেলেদের জন্য মাননীয় প্রধানমন্ত্রী জননেত্রী শেখ হাসিনার বিশেষ ভিজিএফ চাল বিতরণ ব্যবস্থা করা হয়। বৃহস্পতিবার ২য় দফায় ইউনিয়নের ৬, ৭, ৮ ও ৯নং ওয়ার্ডের নিবন্ধিত জেলেদের তালিকা অনুযায়ী চাল বিতরণ করা হয়। ট্যাগ অফিসার ও উপজেলা মৎস্য কর্মকর্তা এস এম মোস্তাফিজুর রহমানের উপস্থিতে চাল বিতরণ উদ্বোধন করেন, প্রতাপনগর ইউপি চেয়ারম্যান ও প্রতাপনগর ইউনিয়ন আওয়ামীলীগের সভাপতি শেখ জাকির হোসেন। এসময় উপজেলা পরিষদের ভাইস চেয়ারম্যান অসীম বরণ চক্রবর্তী, ইউপি সচিব, ইউপি সদস্য/সদস্যা বৃন্দ, রাজনৈতিক ও গন্যমান্য ব্যক্তিবর্গ উপস্থিত ছিলেন।

আশাশুনিতে ঘুর্ণিঝড়ে ক্ষতিগ্রস্ত এলাকা পরিদর্শনে ইউএনও

আশাশুনিতে ঘুর্ণিঝড়ে ক্ষতিগ্রস্ত এলাকা পরিদর্শনে ইউএনও




আহসান উল্লাহ বাবলু আশাশুনি ( সাতক্ষীরা) প্রতিনিধিঃ
ঘুর্ণিঝড় আম্ফানে ক্ষতিগ্রস্ত এলাকা পরিদর্শন করেছেন আশাশুনি উপজেলা নির্বাহী অফিসার মীর আলিফ রেজা। বৃহস্পতিবার সকালে তিনি পরিদর্শনে বের হন। ঘূর্ণিঝড় আম্পানে ক্ষতিগ্রস্ত প্রতাপনগর ইউনিয়নের রাস্তা ঘাট, ভেড়িবাধ, ক্ষতিগ্রস্থ ঘরবাড়ি পরিদর্শন ও ক্ষতিগ্রস্তদের সাথে কথা বলে বিস্তারিত অবহিত হন ইউএনও মীর আলিফ রেজা। সাথে সাথে সামাজিক দুরত্ব বজায় রেখে ত্রাণ বিতরণ কার্যক্রম পরিচালনা, করোনা মোকাবেলায় সবাইকে বাইরে বের হলে অবশ্যই মাস্ক পরিধান করা ও সামাজিক দুরত্ব বজায় রাখার জন্য সবাইকে সচেতন করে মতবিনিময় ও প্রচার চালান হয়। এসময় উপজেলা পরিষদের ভাইস চেয়ারম্যান বাবু অসীম বরণ চক্রবর্তী, পিআইও সোহাগ খান ও ইউপি চেয়ারম্যান শেখ জাকির হোসেন উপস্থিত ছিলেন।

শ্রীউলায় বিদেশ প্রত্যাগতকে হোম কোয়ারিন্টাইন

শ্রীউলায় বিদেশ প্রত্যাগতকে   হোম কোয়ারিন্টাইন





আহসান উল্লাহ বাবলু আশাশুনি ( সাতক্ষীরা)  প্রতিনিধিঃ আশাশুনি উপজেলার শ্রীউলা ইউনিয়নে বিদেশ থেকে আগত এক ব্যক্তিকে হোম কোয়ারিন্টাইনে রাখা হয়েছে। বৃহস্পতিবার প্রশাসনের পক্ষ থেকে তাকে হোম কোয়ারিন্টাইন নিশ্চিত করা হয়। শ্রীউলা ইউনিয়নের নাকতাড়া গ্রামের অশোক সরকারের পুত্র কিংকর সরকার ভারতের তামিলনাড়ু থেকে এদিন বাড়িতে আগমন করেন। খবর পেয়ে প্রশাসনের পক্ষ থেকে সেখানে উপস্থিত হয়ে তাকে হোম কোয়ারেন্টাইন নিশ্চিত করা হয়। সরকারি নির্দেশনা তিনিসহ বাড়ির অন্য সদস্যরা যথাযথ ভাবে প্রতিপালন করে সে ব্যাপারে সকলকে সতর্ক করা হয়।

মাধবপুরে পুকুরের পানিতে ডুবে শিশুর মৃত্যু

মাধবপুরে পুকুরের পানিতে ডুবে শিশুর মৃত্যু
,




লিটন পাঠান হবিগঞ্জ জেলা প্রতিনিধি 

হবিগঞ্জের মাধবপুরে পুকুরের পানিতে ডুবে পাঁচ বছরের এক কন্যা শিশুর মৃত্যু হয়েছে। সে মাধবপুর উপজেলার চৌমুহনী ইউনিয়নের তুলশীপুর গ্রামের মিশু মিয়ার মেয়ে। বৃহস্পতিবার সকালে ১১টা দিকে বাড়ির পাশে পুকুর থেকে তার লাশ উদ্বার করা হয়। সকাল থেকে,

তার কোন খোঁজ খবর না পেয়ে বাড়ির, লোকজন আশপাশে খোঁজাখুঁজি করতে থাকে। একপর্যায়ে সকাল ১১টার দিকে তার লাশ পুকুরে ভেসে থাকতে দেখে তার মৃতদেহ সেখান থেকে উদ্ধার করে পরিবারের লোকজন তাদের ধারণা,

সকালে খেলা করার সময় এক পর্যায়ে, অসাবধানতাবশত পুকুরে পড়ে তার মৃত্যু হয়। দুপুরে পারিবারিক কবরস্থানে তার লাশ দাফন করা হয়েছে।

মাধবপুরে সবজি বাজারের বেহাল দশা পানি ও কাদামাটি,

মাধবপুরে সবজি বাজারের বেহাল দশা পানি ও কাদামাটি,





লিটন পাঠান, হবিগঞ্জ জেলা প্রতিনিধি 

হবিগঞ্জের মাধবপুরে করোনা ভাইরাসের সংক্রমণ রোধে মাধবপুর বাজারে এলাকায় অবস্থিত সবজি বাজারকে মাধবপুর উপজেলা মাঠে স্থানান্তর করে উপজেলা প্রশাসন। সেখানে সামাজিক দূরত্ব বজায় রেখে সবজি ক্রয়ের ব্যবস্থা করা হয়। কয়েকদিনের টানা বৃষ্টিতে পানি জমে যায়, হাটার মত অবস্থা নেই বললেই চলে। এতে বিড়ম্বনা ও ক্ষতিতে পড়তে হচ্ছে সবজি বিক্রেতাগণকে।

বৃহস্পতিবার (১৮-জুন) দুপুরে সরেজমিনে গিয়ে দেখা যায়, মাধবপুর উপজেলা মাঠে কাঁচা বাজারে বিভিন্ন দূরদূরান্ত থেকে মানুষ এসেছে বাজার করার জন্য আবার কিছু ক্ষুদ্র বিক্রেতা নিজের চাষ করা জমির সবজি নিয়ে বসেছেন। কিন্তু বসার মত জায়গায় নেই উচু করে নিচে ইটের স্লব দিয়ে তার ওপর কাঠের পাটাতনের মত করে নিয়মিত,

দোকানিরা দোকানদারী করছে তাতেও, বাধছে সমস্যা জোরে বৃষ্টি আসলেই ভিজে যায় আলু পেঁয়াজসহ আরও অনেক মালামাল। কাদা পানি মাড়িয়ে বাজার করতে হচ্ছে ক্রেতাদের।
বাজার সবজি কমিটির সাধারণ সম্পাদক ছোট্টু মিয়া বলেন, সরকার যেখানে আমাদের স্থানন্তর করেছে,

সেখানেই রয়েছি কিন্তু ঝড় বৃষ্টি হলে,
দোকান ঠিক মত করা যায় না নিচে পানি হয়ে যায় এক হাঁটু। দোকানদারি করতে অসুবিধা হয়। তারপরও কষ্ট করে দোকান পাট খুলছি। পরিবার পরিজন নিয়ে বাঁচার জন্য দোকান খুলছি। আমরা নিজেরা টাকা ওঠায়ে মাঠে পানি যাওয়ার জায়গা করে দিয়েছি। এমন অবস্থা হলে,

আমরা দোকান বন্ধ করে দিবো আমরা, বারবার উপজেলা প্রশাসনের সঙ্গে যোগাযোগ করছি, শুধু আশ্বাস দিচ্ছে।
বাজারে আসা ক্রেতা ডিএসবির এসআই সাইকুল ইসলাম সুজন বলেন, মাধবপুরে বাজার ভিতরে সবজি বাজার ছিল। করোনার সংক্রমণের কারণে কাচামালের 

বাজার মাধবপুরে উপজেলা মাঠে এখানে ক্রেতারা, সামাজিক দূরত্ব বজায় রেখে সবজি ক্রয় করলেও আকাশের বৃষ্টির কারণে বাজারে এই অবস্থা সৃষ্টি হয়। যাওয়ার জায়গা নেই। কাদামাটি হয়ে হাঁটু গেরে যাওয়ার অবস্থা এ বিষয়ে মাধবপুর, উপজেলা সহকারী কমিশনার ভূমি আয়েশা আক্তার বলেন, 

তরকারি বাজার খোলা জায়গা ছাড়া অন্যত্রর সরানোর করোনা পরিস্থিতিতে কোনভাবেই সম্ভব না। উনারা আমার সঙ্গে যোগাযোগ করেছে ,আমি স্যারের সঙ্গে কথা বলে দ্রুত সমাধান করা হবে।

করোনা কালীন সময়ে পড়া লেখা এখন দৈনিক কপোতক্ষ নিউজে

করোনা কালীন সময়ে পড়া লেখা এখন দৈনিক কপোতক্ষ নিউজে

 



আজকের বিষয় সাধারণ গণিত  

শ্রেণিঃ নবম- দশম
বিষয়ঃ গণিত
অধ্যায় -১
পার্ট-২

উদাহরণ-১.√3 এবং 4 এর মাঝে দুইটি অমূলদ সংখ্যা নির্ণয় কর।

সমাধানঃ√3=1.7320

ধরি,a=2.1234567.....
b=3.1234567........

a ও b উভায়  বাস্তব সংখ্যা এবং উভয় √3 থেকে বড় এবং 4থেকে ছোট।

অর্থাৎ, √3<a<4
         √3<b<4

a ও b উভয় কে ভগ্নাংশ আকারে প্রকাশ করা যায় না।

সুতারাং a ও b উভায় দুইটি অমূলদ সংখ্যা। ( দেখানো হলো)

লেখক,
সম্রাট হোসেন
শৈলকুপা উপজেলা প্রতিনিধি, দৈনিক কপোতক্ষ নিউজ
সহকারী শিক্ষক গণিত ও আইসিটি।
মোবাইলঃ০১৭৭২ ৪১৩০৬৫
বিঃ দ্রঃ এখন থেকে নিয়মিত লেখা পড়ার  কলাম প্রকাশ করা  হবে। পত্রিকার সাথে থাকুন ঘরে থেকে আপনার শিশুকে লেখা পড়া করান।


মাধবপুুরে গবাদি পশুর মধ্যে ঢুকেছে নতুন ভাইরাস আক্রান্ত হচ্ছে গরু,

মাধবপুুরে গবাদি পশুর মধ্যে ঢুকেছে নতুন ভাইরাস আক্রান্ত হচ্ছে গরু,




লিটন পাঠান হবিগঞ্জ জেলা প্রতিনিধি

হবিগঞ্জের মাধবপুরে গবাদিপশুর মধ্যে নতুন একধরনের ভাইরাসজনিত রোগের প্রাদুর্ভাব দেখা দিয়েছে। এক মাস ধরে উপজেলার বিভিন্ন গ্রামে এই ভাইরাসে আক্রান্ত গরুর সংখ্যা ক্রমেই বেড়ে চলেছে। এর চিকিৎসা নিয়ে এখন চিন্তিত হয়ে পড়েছেন কৃষকেরা অন্তত পাঁচজন, পল্লী পশু চিকিৎসক আমার সংবাদকে জানিয়েছেন, তাঁরা গ্রামের প্রবীণদের কাছে শুনেছেন, গ্রামে আগে কখনো এমন রোগ দেখা যায়নি চৌমুহনী, ইউনিয়নের জয়পুর গ্রামের খামারী শাকিল মিয়া এবং কমলপুুর,

গ্রামের মইন উদ্দিন জানান, এই রোগে আক্রান্ত হলে প্রথমে গরুর শরীরের বিভিন্ন স্থান ফুলে গুটি হয়ে ওঠে। এর সঙ্গে গরুর শরীরের তাপমাত্রা (জ্বর) বেড়ে যায়। এতে আক্রান্ত গরুগুলো নিস্তেজ হয়ে পড়ে দুই-তিন দিনের মধ্যে গুটিগুলো ফেঁটে কষ (রস) ঝরে। একপর্যায়ে ক্ষতগুলো পঁচে গরুর শরীর থেকে মাংস খসে পড়ে। এসময় দুর্গন্ধ ছড়িয়ে পড়ে আশপাশে উপজেলা, প্রাণিসম্পদ দপ্তরের তথ্যমতে,

 দক্ষিণ এশিয়ার অনেক দেশেই গরুর, শরীরে এই ভাইরাস দেখা দিয়েছে
এ কারণে বাংলাদেশেও এই ভাইরাস, ঢুকেছে। এই ভাইরাসটি লাম্পি স্কিন ডিজিজ (এলএসডি) নামে পরিচিত। গত এক মাসে উপজেলা প্রাণিসম্পদ দপ্তর থেকে এই রোগের চিকিৎসা দেয়া হয়েছে অনেক গুলো গরুকে। এই দপ্তরের ভেটেরিনারি শাখা থেকে জানা যায়, মাধবপুরে গরুর শরীরে এই ভাইরাসটি দেখা দিয়েছে অথচ এখনো,

এর কোনো প্রতিষেধক বের হয়নি মশা ও, মাছির মাধ্যমে এই ভাইরাস ছড়িয়ে পড়ে। তবে উপজেলায় একটি গরু মারা যাওয়ার খবর আমরা এ পর্যন্ত পেয়েছি।
পল্লী পশু চিকিৎসক নাজমুল হাসান, আমার সংবাদকে বলেন, এ পর্যন্ত এই ধর্মঘর ও চৌমুহনী ইউনিয়নের অন্তত এক হাজার গরু এই, ভাইরাসে আক্রান্ত হয়েছে এসময় গরুর খাওয়া নিয়মিতও
স্বাভাবিক থাকে না বলে কৃষকদের, 

পড়তে হচ্ছে বিপাকে। চৌমুহনী, ইউনিয়নের আলাবক্সপুর গ্রামের মুক্তা শাহ এর বাড়ি গিয়ে দেখা যায়, আঙ্গিনায় একটি গাভীর সামনের বাঁ পায়ের কিছু অংশজুড়ে ক্ষত হয়ে মাংস খসে পড়েছে। সেখান থেকে ঝরে পড়ছে কষ। এই ক্ষতস্থান থেকে দুর্গন্ধও ছড়াচ্ছে।
মুক্তা শাহ বলেন, তাঁর ৪টি গরুর মধ্যে ২টি গরু এই রোগে আক্রান্ত হয়েছে। এ 

পর্যন্ত গরু গুলোর চিকিৎসায় তাঁর ব্যয় হয়েছে অনেক টাকা। চৌমুহনী ইউনিয়নের তুলশিপুর এলাকার পল্লি পশু চিকিৎসক নাজমুল হাসান আরও বলেন, গরু গুলোর শরীরের তাপমাত্রা নিয়ন্ত্রণ ক্ষতস্থান শুকানো গরুর শরীরের, চামড়া চর্মরোগ থেকে রক্ষায় তিনি অ্যান্টিবায়োটিক ও অ্যান্টিহিস্টামিন–জাতীয় ইনজেকশন দিচ্ছেন।এতে গরুর ক্ষতস্থান সেরে উঠছে এ বিষয়ে,

 মাধবপুুর উপজেলা প্রাণিসম্পদ, কর্মকর্তা ডাঃ মজিবুর রহমান মানিক জানান, এই ভাইরাস নিয়ে কৃষকের আতঙ্কিত হওয়ার কিছু নেই। স্থানীয় পল্লী পশু চিকিৎসকদের চিকিৎসায় অনেক গরুই সুস্থ হয়ে উঠছে। কৃষকদের গোয়ালঘর পরিষ্কার-পরিচ্ছন্ন রাখার উপদেশ দিয়েছেন।

ক্ষুদ্র নৃ-গোষ্ঠি ছাত্র-ছাত্রীদের মাঝে বাইসাইকেলে বিতরণ

ক্ষুদ্র নৃ-গোষ্ঠি ছাত্র-ছাত্রীদের মাঝে বাইসাইকেলে বিতরণ





মোঃ ফিরোজ হোসাইন রাজশাহী ব্যুরোঃ

সমতলের ক্ষুদ্র নৃ-গোষ্ঠির জীবনমান উন্নয়নে গৃহীত বিশেষ এলাকার জন্য উন্নয়ন সহায়তা (পার্বত্য চট্টগ্রাম ব্যাতিত)কর্মসূচি ২০১৯-২০২০ আওতায় পোরশা উপজেলার ক্ষুদ্র নৃ-গোষ্ঠি ছাত্র-ছাত্রীদের মাঝে শিক্ষা বৃত্তি,শিক্ষা উপহাকরণ,স্বাস্হ্য,উপহার ক্রীড়া ও সাংস্কৃতিক সামগ্রী এবং ০৬টি ইউনিয়নে মোট ৩১টা বাইসাইকেলে বিতরণ আনুষ্ঠান শুভ উদ্বোধন করেন ভিডিও কনফারেন্সের মাধ্যমে প্রধান আতিথিঃবীর মুক্তিযোদ্ধা জনাব সাধন চন্দ্র মজুমদার (এমপি) মাননীয় মন্ত্রী খাদ্য  মন্রণালয়, গনপ্রজাতন্ত্রী বাংলাদেশ সরকার।

১নং নিতপুর ইউনিয়নে ৫টি,২নং তেতুলিয়া ইউনিয়নে ৫টি, ৩নং ছাওর ইউনিয়নে ৭টি,
৪নং গাংগুরিয়া ইউনিয়নে ৪টি, ৫নং ঘাটনগর ইউনিয়নে ৪টি,৬নং মশিদপুর ইউনিয়নে ৬টি।
এই ৬টি ইউনিয়নে মোট ৩১টি। 

এসময় উপস্থিত ছিলেন,উপজেলা পরিষদ চেয়ারম্যান অধ্যক্ষ জনাব,মোঃশাহ্ মঞ্জুর মোর্শেদ চৌধুরী, ইউএনও জনাব,মোঃনাজমুল হামিদ রেজা।পোরশা উপজেলা আওয়ামীলীগের সাধারণ সম্পাদক,নওগাঁ জেলা পরিষদের সুযোগ প্যালেন চেয়ারম্যান জনাব আলহাজ্ব মোঃ মোফাজ্জল হোসেন মোল্লা, উপজেলা ভায়েস চেয়ারম্যান জনাব মোঃ কাজিবুল ইসলাম,  ১নং নিতপুর ইউনিয়নের চেয়ারম্যান শাহ আবুল কালাম চৌধুরী 
উপজেলা কৃষি কর্মকর্তা মাহফুজ আলম, উপসহকারী কৃষি কর্মকর্তা আব্দুল হাই ও আদিবাসী সভাপতি মহেন্দ্র পাহান।

বাংলাদেশ কৃষক সমিতির উদ্দ্যোগে দিনাজপুরে ঘন্টাব্যাপী কৃষকবন্ধন

বাংলাদেশ কৃষক সমিতির উদ্দ্যোগে দিনাজপুরে ঘন্টাব্যাপী কৃষকবন্ধন




দিনাজপুর প্রতিনিধি
:কৃষি বাঁচাও কৃষক বাঁচাও দেশ বাঁচাও শ্লোগান নিয়ে এবং ফসলের লাভজনক দাম দাও ও ইউনিয়ন পর্যায়ে সরকারী ধান ক্রয়কেন্দ্র চালুসহ বিভিন্ন দাবীতে দিনাজপুরে ঘন্টাব্যাপী কৃষকবন্ধন কর্মসুচী পালন করেছে বাংলাদেশ কৃষক সমিতি দিনাজপুর।
 দিনাজপুর প্রেসক্লাবের সন্মুখ সড়কে বাংলাদেশ কৃষক সমিতি দিনাজপুর জেলা শাখার আয়োজনে সামাজিক দুরুত্ব বজায় রেখে ঘন্টাব্যাপী কৃষকবন্ধন করেছে সংগঠনটির নেতকর্মীরা ও সর্মথকেরা।  
সংগঠনের সভাপতি অধ্যাপক বদিউজ্জামান বাদলের সভাপতিত্বে কৃষকবন্ধন চলাকালে আয়োজিত সংক্ষিপ্ত সমাবেশে বক্তব্য রাখেন কৃষক সমিতির কেন্দ্রীয় সহ: সভাপতি মো: আলতাফ হোসাইন,কমিউনিস্ট পার্টির জেলা সভাপতি এ্যাড.মেহেরুল ইসলাম,কৃষক সমিতির জেলা সা:সম্পাদক দয়ারাম রায়,কৃষক নেত্রী সবিতা রানী,ইকবাল হাসান,আলিমুজ্জামান,ট্রেড ইউনিয়ন কেন্দ্র নেতা এসএম চন্দন, ছাত্র ইউনিয়ন নেতা অনতু বসাক প্রমুখ।
মানববন্ধনে বক্তারা বৈশ্বিক বির্পযয় ও দূর্ভিক্ষ মোকাবেলা করতে কৃষির বরাদ্ধ বৃদ্ধিসহ সকল ফসলের লাভজনক মুল্য নিশ্চিকরণের দাবী জানান। তারা ক্ষোভ প্রকাশ করে বলেন,যখন কর্মহীন মানুষ খাদ্যের জন্য হাহাকার করছে তখনও ক্ষুদ্র ঋনদানকারি এনজিও গুলো সুদের কিস্তি আদায় করার জন্য ঋনগ্রহিতাদের উপর চাপ দিচ্ছে। তারা এনজিও গুলোর সুদের কিস্তি আদায় বন্ধে ব্যবস্থা নিতে দাবী করেন। 
এছাড়াও মানববন্ধনে বক্তারা কৃষককে বাঁচাতে হলে সরাসরি কৃষকের কাছ হতেই ধান ক্রয় এবং দিনাজপুরের টমেটো সংরক্ষনাগার নির্মানের দাবী করেন।

দিনাজপুর সদর উপজেলা প্রশাসন কার্যালয়ে জীবাণুনাশক টানেলের উদ্বোধন

দিনাজপুর সদর উপজেলা প্রশাসন কার্যালয়ে জীবাণুনাশক টানেলের উদ্বোধন




দিনাজপুর প্রতিনিধি
॥ ১৮ জুন বৃহস্পতিবার সকালে করোনাভাইরাস সংক্রমণ রোধে দিনাজপুর সদর উপজেলা প্রশাসন কার্যালয়ে স্বয়ংক্রিয় জীবাণু নাশক টানেল এর স্থাপন করা হয়েছে। স্বল্পব্যয়ে স্বয়ংক্রিয় জীবাণু নাশক টানেলটির কার্যক্রম ফিতা কেটে আনুষ্ঠানিক উদ্বোধন করেন দিনাজপুর সদর উপজেলার চেয়ারম্যান ইমদাদ সরকার এবং দিনাজপুর সদর উপজেলার নির্বাহী কর্মকর্তা এস.এইচ.এম মাগফুরুল হাসান আব্বাসী। এসময় উপস্থিত ছিলেন সদর উপজেলা যুব কর্মকর্তা মামুন হাসান চৌধুরী, সমবায় কর্মকর্তা সহ সদর উপজেলা কর্মকর্তাবৃন্দ এবং সামাজিক সংগঠন আলোর পথে যাগো যুব, দিনাজপুর এর সভাপতি ও গবেষক দলের প্রধান মোঃ মোসাদ্দেক হোসেন, গবেষণা সহযোগী মোঃ নাঈম ও গোলাম মোস্তফা প্রমূখ। ইতিপূর্বে এই স্বল্পব্যয়ে স্বয়ংক্রিয় জীবাণু নাশক টানেল দিনাজপুর জেলা প্রশাসকের কার্যালয়, এমআব্দুর রহিম মেডিকেল হাসপাতাল, গাওউসুল আযম চক্ষু হাসপাতাল, উপশহর টেক্সটাইল ইঞ্জিনিয়ারিং ইনস্টিটিউটসহ অন্যান্য পার্শবর্তি জেলা সমুহে স্থাপণ করা হয়।

বাংলাদেশের ওয়ার্কাস পাটির মানববন্ধন অনুষ্ঠিত

বাংলাদেশের ওয়ার্কাস পাটির  মানববন্ধন অনুষ্ঠিত





দিনাজপুর প্রতিনিধি :
উত্তরবঙ্গে করোনা মোকাবেলায় নমুনা পরিক্ষার জন্য দিনাজপুর হাজী মোহাম্মদ দানেশ বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়সহ অন্যান্য স্থানে আরো করোনা ভাইরাস পরিক্ষা কেন্দ্র স্থাপনের দাবীতে মানববন্ধন করেছে বাংলাদেশের ওয়ার্কাস পাটি দিনাজপুর জেলা শাখার নেতাকর্মী ও সমর্থকেরা।
করোনার নমুনা পরিক্ষা কেন্দ্র স্থাপনের দাবীতে দিনাজপুর প্রেসক্লাবের সন্মুখ সড়কে ঘন্টাব্যাপী মানববন্ধন কর্মসুচী পালন করেছে বাংলাদেশের ওয়ার্কাস পাটির নেতাকর্মী ও সমর্থকেরা।মানববন্ধন চলাকালে বক্তারা বলেন উত্তরাঞ্চলের পঞ্চগড়,ঠাকুরগাঁও,নীলফামারী ও দিনাজপুর জেলার কোটির অধিক মানুষের বসবাস। অথচ এই ৪ জেলার মানুষের জন্যে মাত্র একটি করোনা নমুনা পরিক্ষা কেন্দ্র স্থাপন করা হয়েছে যেখানে মাত্র ১৮৮টি নমুনা পরিক্ষা করা সম্ভব। যা করোনা ভাইরাস মোকাবেলায় মোটেও সন্তোষজনক নয় এতে করে আমাদের করোনার ঝুকি থেকেই যাচ্ছে। 
তারা সরকারের কাছে দাবী করে বলেন, মরণব্যাধি করোনার হাত থেকে মানুষকে বাঁচাতে এ অঞ্চলে আরো বেশী বেশী নমুনা পরিক্ষা কেন্দ্র স্থাপন করতে হবে। মানববন্ধনে নেতাকমীদের প্রতি করোনা ভাইরাস প্রতিরোধে সামাজিক দুরুত্ব বজায় রেখে সর্বস্তরে সচেতনতামুলক কর্মসুচী চালিয়ে যাওয়ার আহবান জানানো হয়।
মানববন্ধনে বক্তব্য রাখেন পার্টির পলিট ব্যুরোর সদস্য মাহমুদুল হাসান মানিক,কেন্দ্রীয় কমিটর সদস্য মো: হবিবর রহমান,জেলা কমিটির সদস্য রবিউল আউয়াল খোকা,আবুল হোসেন, আমিনুল করিম আমু,বিমল আগরওয়াল প্রমুখ।

নওগাঁর আত্রাইয়ে অজ্ঞাত লাশের সন্ধান ও রহস্য উদঘাটন

নওগাঁর আত্রাইয়ে অজ্ঞাত লাশের সন্ধান ও রহস্য উদঘাটন



 

মোঃ ফিরোজ হোসাইন
রাজশাহী ব্যুরো

নওগাঁর আত্রাইয়ে অজ্ঞাত লাশের সন্ধান ও রহস্য উদঘাটন করেছে আত্রাই থানা পুলিশ। মৃত রিয়া আক্তার(২৭) উপজেলার ভোঁপাড়া ইউনিনের সদুপুর গ্রামে মৃত জাকিরের সাবেক স্ত্রী।
জানাযায়, জাতপাড়া গ্রামের মৃত খবির উদ্দিনের মেয়ে মৃত রিয়া আক্তারের সাথে সদুপুর গ্রামের মৃত সফির উদ্দিনের ছেলে মৃত জাকির হোসেনের বিয়ে হয় বেশ কয়েক বছর আগে। বিয়ের পর থেকে সংসারে অভাব অনটন লেগে থাকায় একপর্যায়ে স্বামী-স্ত্রী উভয়েই মাদক ব্যাবসার সাথে জড়িয়ে পড়ে। এতেও থেমে থাকেনা তাদের সাংসারিক অশান্তি। একপর্যায়ে রিয়া আক্তার স্বামীকে তালাক দিয়ে বাবার বাড়ীতে চলে যায়। সেখানে শান্তি না পেয়ে পুনরায় জাকিরের সাথে সখ্যতা গড়ে তোলে। গত ১৪ জুন রোববার মৃতার স্বামী জাকির জেল হতে জামিনে বের হয়ে বাড়ীতে আসে। বুধবার সকালে রিয়াকে বিয়ে করার উদ্দেশ্যে যাবার পথে মেরেফেলে মামাবাড়ী গিয়ে গ্যাস ট্যাবলেট খায় জাকির। শারীরিকভাবে অসুস্থ হয়ে পড়লে মামা বাড়ীর লোকজন আত্রাই হাসপাতালে আনা পথে মারা যায় জাকির। আরো রহস্য উদঘাটনে পুলিশ সাহেবগঞ্জ গ্রামের তোহার স্ত্রী রাখি কে জিজ্ঞাসাবাদ করছে।
আত্রাই থানা ওসি মোসলেম উদ্দিন বলেন, লাশ ময়না তদন্তের জন্য নওগাঁ মর্গে পাঠানো হয়েছে। আরো কোন রহস্য আছে কিনা খতিয়ে দেখা হচ্ছে।

বেলকুচিতে চাষীদের মাঝে বিনামূল্যে সবজি বীজ বিতরণ

বেলকুচিতে চাষীদের মাঝে বিনামূল্যে সবজি বীজ বিতরণ



মাসুদ রানা সিরাজগঞ্জ জেলা  প্রতিনিধিঃ
 
পারিবারিক কৃষির আওতায়  সবজি পুষ্টি  
বাগান স্থাপনের  লক্ষ্য বুধবার স্বাস্থ্যবিধি মেনে ও সামাজিক  দূরত্ব  বজায়  রেখে বেলকুচি  উপজেলা  পরিষদ  চত্বরে উপজেলার  ক্ষুদ্র ও প্রান্তিক চাষীদের মাঝে বিনামূল্যে সবজি 
বীজ,সাইন বোর্ড  ও নগদ অর্থ  সহয়তা প্রদান করা হয়। বেলকুচি  উপজেলার ১ শত ৯২ জন প্রান্তিক কৃষকদের  মাঝে  এ উপকরণ  বিতরণ  করেন  উপজেলা  মোঃ নুরুল ইসলাম সাজেদুল। এই সবজি বীজ বিতরণ অনুষ্ঠানে সভাপতিত্ব করেন উপজেলা নির্বাহী অফিসার সিফাত-ই-জাহান। বিশেষ  অতিথির  বক্তব্য  রাখেন, উপজেলা কৃষি অফিসার  কল্যাণ প্রসাদ পাল। 
প্রধান  অতিথি তারঁ বক্তব্যে  বলেন , বর্তমান প্রধানমন্ত্রী জননেত্রী শেখ হাসিনা কৃষি ও কৃষক বান্ধব সরকার। কৃষি উৎপাদন বাড়ানোর লক্ষে ক্ষুদ্র ও প্রান্তিক চাষীদের উদ্বুদ্ধ করার জন্য বিশেষ প্রণোদনা কর্মসূচী হাতে নিয়েছেন। তিনি আরও  বলেন, কৃষি উপকরণ বিতরণের ফলে উৎপাদন বেড়ে আজ আমরা খাদ্যে স্বয়ং সম্পুর্ণ। দেশের খাদ্য চাহিদা মিটানোর পরে অতিরিক্ত খাদ্য বিদেশে রপ্তানি করতে সক্ষম হয়েছি। আর এ সাফল্যের দাবীদার বর্তমান সরকার, কৃষক ও কৃষি কর্মী। কিন্তু বর্তমান সরকার   কৃষকদের বাড়ি থেকে এনে বীজ ও সার দিচ্ছেন। আর বিএনপি জোট সরকারের সময় বীজ ও সারের জন্য কৃষকদেরকে মরতে হয়েছে।
এ সময় উপজেলা কৃষি অফিসার  কল্যাণ প্রসাদ পাল তার বক্তব্যে বলেন, মাননীয়  প্রধানমন্ত্রীর ঘোষনা ১ ইঞ্চি   জমিও অনাবাদি থাকবে না। প্রায় ১১ রকমের বীজ কৃষকদের মাঝে  বিতরণ  করা হয়। এছাড়া এই বীজ বপনে পারিবারিক  পুষ্টির চাহিদা  হবে এবং  অর্থনৈতিকভাবে সাবলম্বী হওয়ার লক্ষে এ বীজ বিনামূল্যে  বিতরণ  করা।
বীজ বিতরণ অনুষ্ঠানে    উপস্থিত ছিলেন, 
কৃষি সম্প্রসারণ অফিসার মোঃ মাহমুদুল হাসান,কৃষি সম্প্রসারণ অফিসার শুভজিত রায় সহ বিভিন্ন ওয়ার্ড ও ইউনিয়ন থেকে আগত কৃষকবৃন্দ।

মোহাম্মাদ নাসিম স্মরনে সোনামুখি ইউঃ আঃলীগের আলোচনা ও দোয়া

মোহাম্মাদ নাসিম স্মরনে সোনামুখি ইউঃ আঃলীগের আলোচনা ও দোয়া




  মাসুদ রানা সিরাজগঞ্জ জেলাপ্রতিনিধি:  জাতীয় চার নেতার অন্যতম শহিদ ক্যাপটেন এম মনসুর আলীর উত্তরসূরী বাংলাদেশ আ.লীগের সভাপতিমন্ডলির সদস্য ও চৌদ্দ দলের সমন্বয়ক কাজিপুরের এমপি সদ্য প্রয়াত মোহাম্মদ নাসিমের আত্মার শান্তি কামনায় সোনামুখী ইউনিয়ন আ.লীগ ও এর অঙ্গ সংগঠনের আয়োজনে এক আলোচনা সভা ও দোয়া অনুষ্ঠিত হয়েছে।
বৃহস্পতিবার (১৮ জুন) বিকেলে সোনামুখী দ্বিমুখী উচ্চ বিদ্যালয় মাঠে আয়োজিত অনুষ্ঠানে সভাপতিত্ব করেন ইউনিয়ন আ.লীগের সভাপতি আজগর আলী মন্ডল।  
অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথির বক্তব্য রাখেন কাজিপুর উপজেলা চেয়ারম্যান খলিলুর রহমান সিরাজী। 
অন্যদের মধ্যে উপজেলা আ.লীগের সভাপতি আলহাজ্ব শওকত হোসেন, ভাইস চেয়ারম্যান দীন মোহাম্মদ বাবলু, সোনামুখী ইউনিয়ন আ.লীগের সাধারণ সম্পাদক নুরুল ইসলাম মাস্টার, উপজেলা আ.লীগের সাংগঠনিক সম্পাদক আব্দুল হান্নান প্রমূখ বক্তব্য রাখেন। 
এসময় উপস্থিত ছিলেন, উপজেলা আ.লীগের প্রচার সম্পাদক উজ্জ্বল কুমার ভৌমিক, যুবলীগ সভাপতি বিপ্লব সরকার, সম্পাদক আলী আসলাম, স্বেচ্ছাসেবকলীগ সাধারণ সম্পাদক আমিনুল ইসলাম, সোনামুখী ইউনিয়ন ছাত্রলীগ সভাপতি আসাদুজ্জামান আসাদ, উপজেলা ছাত্রলীগের সাংগঠনিক সম্পাদক পবিত্র কুমার সাহাসহ আ.লীগ ও এর অঙ্গ সংগঠনের নেতাকর্মি বৃন্দ।   
আলোচনা শেষে মোহাম্মদ নাসিম ও তাঁর পরিবারের সুস্বাস্থ্য কামনা করে মুনাজাত পরিচালনা করেন সোনামুখী ঈদগাহ্ মসজিদের খতিব মুফতি আব্দুল কুদ্দুস।

লালপুরে উপসর্গে একজনের মৃত্যু, সনাক্তের জন্যে নমুনা সংগ্রহ না করায় আতংকে এলাকাবাসী

লালপুরে উপসর্গে একজনের মৃত্যু, সনাক্তের জন্যে নমুনা সংগ্রহ না করায় আতংকে এলাকাবাসী






রাজশাহী ব্যুরো
নাটোরের লালপুরে করোনা উপসর্গ নিয়ে মহসিন আলী(৫৫) নামে একজনের মৃত্যু হয়েছে। কিন্তু মৃত বাক্তি করোনা আক্রান্ত ছিল কিনা সেটা নির্ণয়ের জন্য নমুনা সংগ্রহ না করায় আতংকে আছে এলাকাবাসী। 

আজ বৃহস্পতিবার (১৮জুন) দুপুরে তার মৃত্যু হয়।

উপজেলার দুড়দুড়িয়া ইউনিয়নের মির্জাপুর গ্রামের মুক্তার হোসেনের ছেলে মহসিন।

এলাকাবাসী জানায়, পাবনা জেলার ঈশ্বরদী ইপিজেডে কর্মরত ছিলেন মহসিন। চারদিন আগে আম কেনার জন্য বাড়িতে আসেন তিনি। আগে থেকেই তার অ্যাজমার সমস্যা ছিল। আজ সকালে তার শারীরিক অবস্থার অবনতি হলে (স্বাশ কষ্ট বেড়ে গেলে) তাকে পার্শ্ববর্তী বাঘা উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে নিয়ে যাওয়ার পথে দুপুর বারোটার দিকে তার মৃত্যু হয়। কিন্তু করোনা উপসর্গ নিয়ে তার মৃত্যু হলেও করোনা সনাক্তের জন্যে তার নমুনা সংগ্রহ করা হয়নি বলেও জানান এলাকাবাসী।

স্থানীয় সংবাদিক সাহীন ইসলাম জানান, এর আগে বেসরকারি উন্নয়ন সংস্থায় কর্মরত তার ছোট ভাই আব্দুল মজিদ ঢাকা থেকে বাড়ি আসলে তাকে হোম কোয়ারেন্টাইন এ থাকতে বলা হয়। কিন্তু তিনি এই আদেশ অমান্য করে রাতেই পালিয়ে ঢাকায় চলে যান। মৃত মহসিনের নমুনা সংগ্রহ না করায় এবং তাদের এভাবে অবাধ চলাচল এ এলাকায় আতঙ্কের সৃষ্টি হয়েছে।

এব্যাপারে উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা উম্মুল বানীন দ্যুতি জানান, আমরা তার মৃত্যুর খবর পেয়েছি। তবে তিনি কোভিড-১৯ এ আক্রান্ত কিনা তা জানতে তার নমুনা সংগ্রহ করা হয়নি। তবে স্বাস্থ্যবিধি মেনে তার মরদেহ দাফনের জন্যে অনুমতি দেয়া হয়েছে এবং আগামীকাল শুক্রবার (১৯ জুন) তার পরিবারের অন্যান্য সদস্যদের নমুনা সংগ্রহ করা হবে। এখন থেকে নমুনা সংগ্রহের পরে সেটার ফলাফল না পর্যন্ত তাদেরকে হোম কোয়ারান্টাইনে থাকতে নির্দেশ দেয়া হয়েছে।

আত্নমর্যাদাশীল ও বুদ্ধিমাণ শিল্পী বাবুই পাখি এখন বিলুপ্তির পথে

আত্নমর্যাদাশীল ও বুদ্ধিমাণ শিল্পী বাবুই পাখি এখন বিলুপ্তির পথে





মোঃ ফিরোজ হোসাইন 
রাজশাহী ব্যুরো

আত্নমর্যাদাশীল ও বুদ্ধিমাণ শিল্পী বাবুই পাখি  আজ বিলুপ্তির পথে বাসা তৈরীর নিপূণ কারিগর বাবুই পাখি।
গ্রাম বাংলায় এখন আর আগের মতো চোখে পড়ে না বাবুই পাখির দৃষ্টিনন্দন বাসা।আগে  নীলফামারী জেলার ডিমলা উপজেলার দক্ষিণখড়িবাড়ী ইউনিয়নের গ্রাম এলাকায় খুব দেখা যেত।
সময়ের বির্বতন আর পরিবেশ বিপর্যয়ের কারণে আজ আমরা হারাতে বসেছি এ পাখিটি। নীরেন্দ্রনাথ রায়   কপোতাক্ষ নিউজে  জানান সেই সঙ্গে হারিয়ে যাচ্ছে শিল্পী, স্থপতি ও সামাজিক বন্ধনের কারিগর বাবুই পাখি ও এর বাসা। 
তালগাছের কচিপাতা, খড়, ঝাউ ও কাশবনের লতাপাতা দিয়ে উঁচু তালগাছে নিপুণ দক্ষতায় বাসা তৈরি করত বাবুই পাখি। সেই বাসা দেখতে যেমন আকর্ষণীয় তেমনি মজবুত।প্রবল ঝড়েও তাদের বাসা ভেঙে পড়ে না। শক্ত বুননের এ বাসা টেনেও ছেঁড়া যায় না। বড় আশ্চর্যের বিষয় হলো, ভারসাম্য রক্ষার জন্য বাসার ভেতরে থাকে কাদার প্রলেপ। বাবুই পাখির অপূর্ব শিল্পশৈলীতে মুগ্ধ হয়ে কবি রজনীকান্ত সেন তাঁর কবিতায় লিখেছিলেন- “বাবুই পাখিরে ডাকি বলিছে চড়ুই,কুঁড়েঘরে থেকে কর শিল্পের বড়াই। এই অমর কবিতাটি এখন এ দেশে তৃতীয় শ্রেণির বাংলা বইয়ে পাঠ্য হিসেবে অন্তর্ভূক্ত। শুধুমাত্র পাঠ্যপুস্তকের কবিতা পড়েই এখনকার শিক্ষার্থীরা বাবুই পাখির শিল্পকর্মের কথা জানতে পারছে।
এখন আর চোখে পড়ে না বাবুই পাখি ও এর নিজের তৈরি দৃষ্টিনন্দন স্থাপত্যশৈলী। সরু চিকন পাতা দিয়ে তৈরি বাবুই পাখির বাসা আর দেখা যায় না। দেখা যায় না এর সামাজিক জীবন ধারাও। অভিজ্ঞ মানুষ মাত্রই জানে বাসা তৈরির পর সঙ্গি খুজতে যায় অন্য বাসায়। সঙ্গি পছন্দ হলে স্ত্রী বাবুইকে সাথী বানানোর জন্য কতই না করে এরা। পুুরুষ বাবুই নিজেকে আকর্ষণীয় করার জন্য খাল বিল ও ডোবায় ফুর্তি করে নেচে বেড়ায় গাছের ডালে ডালে।

বাসা তৈরির কাজ অর্ধেক হলেও কাঙ্খিত স্ত্রী বাবুইকে সেই বাসা দেখায়। বাসা পছন্দ হলেই কেবল সম্পর্ক তৈরি হয়। স্ত্রী বাবুই বাসা পছন্দ করলে বাকি কাজ শেষ করতে বাবুইয়ের সময় লাগে চারদিন। স্ত্রী বাবুই পাখির প্রেরণা পেয়ে পুরুষ বাবুই মনের আনন্দে শিল্পসম্মত ও নিপুণভাবে বিরামহীন কাজ করে বাসা তৈরি করে। বাসার ভেতরে ঠিক মাঝখানে একটি আড়া তৈরি করে, সেখানে পাশাপাশি দুটি পাখি বসে প্রেমালাপসহ নানা রকম গল্প করে।

তারপর নিদ্রা যায় এ আড়াতেই। কী অপূর্ব বিজ্ঞানসম্মত শিল্প চেতনাবোধ তাদের! একটা সময় ছিল, একটি তালগাছে ঝুলে থাকত অসংখ্য বাসা। সে দৃশ্য বড়ই নান্দনিক এবং চিত্তাকর্ষক যা চোখে না দেখলে সে দৃষ্টিনন্দন দৃশ্য কাউকে বোঝানো সম্ভব নয়। এসব শিল্পকর্মের ছবি। ব্যবহার করে অনেক ক্যালেন্ডার তৈরি হতো। অফুরন্ত যৌবনের অর্ধিকারি প্রেমিক বাবুইয়ের যতই প্রেমই থাক, প্রেমিকার ডিম দেওয়ার সাথে সাথে প্রেমিক বাবুই খুঁজতে থাকে আরেক প্রেমিকা ।

পুরুষ বাবুই এক মৌসুমে ছয়টি বাসা তৈরি করতে পারে। ধান ঘরে ওঠার মৌসুম হলো বাবুই পাখির প্রজনন সময়। দুধ ধান সংগ্রহ করে স্ত্রী বাবুই বাচ্চাদের খাওয়ায়। এরা তালগাছেই বাসা বাঁধে বেশি। তালগাছ উজাড় হওয়ার কারণে বাবুই পাখি এখন বাধ্য হয়ে অন্য গাছে বাসা বাঁধছে। এক সময় নীলফামারী জেলা উপজেলায় গ্রাম অঞ্চল গুলোতে প্রচুর পরিমাণে দেখা যেত।

৮০র দশকে ফসলে কীটনাষক ব্যবহার করার ফলে আর মৃত পোকামাকড় খেয়ে বাবুই পাখির বিলুপ্তির প্রধান কারণ বলে মনে করা হচ্ছে। প্রকৃতির বয়ন শিল্পী, স্থপতি এবং সামাজিক বন্ধনের কারিগর নামে সমধিত পরিচিত বাবুই পাখি আর তার বাসা এখন আর চোখে পড়ে না। এক শ্রেনীর লোক শিকার করছে বাবুই পাখি। অন্যদিকে খাঁচায় বন্দি করে বেচা কেনাও হচ্ছে এ পাখি। খোঁজ নিয়ে যানা গেছে একশ্রেণীর মানুষ অর্থের লোভে বাবুই পাখির বাসা সংগ্রহকরে শহরে ধনীদের কাছে বিক্রি করছে। গাছে গাছে এসব বাসা এখন আর দৃশ্যমান না হলেও শোভা পাচ্ছে শহরের ধনীদের ড্রয়িং রুমে ও চাদে।

নওগাঁর আত্রাই রোডে পানি ভর্তি বেহাল অবস্হা

নওগাঁর আত্রাই রোডে পানি ভর্তি বেহাল অবস্হা







  মোঃ ফিরোজ হোসাইন
রাজশাহী ব্যুরো

 নওগাঁর আত্রাই 
বান্দাইখাড়া সরদার পাড়া আত্রাই রোডে একটু বৃষ্টি হলেই রাস্তার এমন বেহাল দশা দেখা যায় রাস্তায় 
সমস্ত পানি জমে থাকে যার কারনে যানবাহন চলাচল সহ মানুষের চলাফেরাও দুষ্ক্রিয় হয়ে 
পরে। 
আজ বৃহস্পতিবার , ১৮জুন ২০২০ খ্রি.সকাল ১১.০০ টায় সরেজমিনে গিয়ে এমন চিত্র পাওয়া গেছে।
স্থানীয় অটো চালক মোঃ হেলাল জানান, বৃষ্টি হলেই তাদের কষ্ট করে অটো চালাতে হয়, তখন তারা যাত্রীও কম পায় ফলে  তাদের আয় রোজগার কমে যায়।
স্থানীয় আরেক জন মোঃ রসুল আলম বলেন,বৃষ্টি হলে পানি জমে থাকার কারনে তারা চলাচল করতে ঠিকমত পারেনা           

আত্রাই  রোডে নিয়মিত যাতায়াত করা এক স্কুল শিক্ষক বলেন-একটু বৃষ্টি হলেই এখানে পানি ভর্তি হয় ফলে আমাদের যাতায়াত করা সমস্যা হয়। আমি স্হানীয় প্রশাসন ও জনপ্রতিনিধির কাছে আহবান করছি উক্ত পানি ভর্তি রাস্তাটি মেরামত করে দেওয়ার জন্য। যাতে করে এই রকম কষ্ট আর পোহাতে না হয়।

ঝিনাইদহের অভিনব কায়দায় চুরি, হাতে- নাতে চোর আটক

ঝিনাইদহের অভিনব কায়দায়  চুরি, হাতে- নাতে চোর আটক



   


খোন্দকার আব্দুল্লাহ বাশার, ঝিনাইদহ জেলা প্রতিনিধি। 



ঝিনাইদহ সদর উপজেলার হলিধানী বাজারে  ব্যাবসায়ীর বাসায় ঢুকে নগদ অর্থ ও গহনা নিয়ে পালানোর সময় চোর চক্রের সদস্য আটক।

আটককৃত চোর চুয়াডাঙ্গা জেলার দামুরহুদা উপজেলার রামনগর গ্রামের ইলিয়াস আলীর ছেলে।
বৃহষ্পতিবার দুপুর ১ টার দিকে  হলিধানী বাজারের পাশে আখসেন্টার সংলগ্ন এলাকায় বাজারের ফল ব্যবসায়ী আজিজুল মিয়ার বাসায় এ ঘটনা ঘটে। 

ভুক্তভোগী পরিবার বলেন, দুপুরে আল আমিন নামে এই লোক বাসার বাইরে মটর সাইকেল রেখে ভিতরে ঢুকে পুরুষ লোকের খোঁজ করে,পুরুষ লোক বাসায় না থাকায়,সে বলে আমি চাচাকে দাওয়াত দিতে এসেছি। এর পর আমি তাকে রুমে নিয়ে নাস্তা দেই।সে বলে মটর সাইকেলে চাবি রয়েছে একটু নিয়ে আসেন। সেই সুযোগে সে ঘরে ড্রয়ার ও আলমারির তালা খুলে নগদ ২০০০০ (বিশ হাজার) টাকাসহ গহনা নিয়ে পালানোর চেষ্টাকালে আমার চিৎকারে লোকজন এসে তাকে ধরে ফেলে। খবর শুনে কাতলা মারি ক্যাম্পের পুলিশ এসে তাকে উদ্ধার করে।   

এ ব্যাপারে কাতলা মারি পুলিশ ক্যাম্পের এ এস আই মোল্লা এনামুল জানান,আটককৃত চোর  
দাওয়াত দেওয়ার নামে বাসায় ঢুকে চুরি করে পালানোর সময় লোকজন তাকে আটক করে।খবর পেয়ে আমরা এসে তাকে উদ্ধার করে জেল হাজতে প্রেরনের লক্ষে থানায় হস্তান্তর করেছি।

কয়রায় উত্তরনের ম্যানেজারের বিরুদ্ধে ত্রাণের টাকা আত্মসাৎ এর অভিযোগ!

কয়রায় উত্তরনের ম্যানেজারের বিরুদ্ধে ত্রাণের টাকা আত্মসাৎ এর অভিযোগ!





 
কয়রা (খুলনা) প্রতিনিধিঃ  কয়রায় আম্পানে ক্ষতিগ্রস্থ হতদরিদ্র পরিবারে ত্রানের টাকা বিতরণ করে রাতে বাড়ী বাড়ী গিয়ে সেই টাকা ফেরত নিয়ে আত্মসাৎ করলেন বেসরকারি সংস্থা উত্তরণের ম্যনেজার ও তার সহযোগিরা। বিষয়টি উত্তরণ কতৃপক্ষ জানার পর তদন্ত কমিটি গঠন করেছেন বলে সংস্থার পরিচালক নিশ্চিত করেছেন। এদিকে ত্রাণের লক্ষ লক্ষ টাকা আত্মসাতের ঘটনাটি জানাজানি হলে সমগ্র কয়রায় প্রতিবাদের ঝড় উঠেছে। এছাড়া তালিকা প্রস্তুত করতে ব্যাপক অনিয়ম করেছেন বলে ইউপি চেয়ারম্যান ও মেম্বরগণ অভিযোগ তুলেছেন।খবর নিয়ে জানা গেছে বেসরকারি সংস্থা উত্তরণ ঘূর্ণিঝড় আম্পানে ক্ষতিগ্রস্থ পরিবারে ত্রাণ বিতরণের জন্য উপজেলার দক্ষিণ বেদকাশি, মহারাজপুর ও কয়রা সদর ইউনিয়নে ৭৫০ পরিবারের তালিকা প্রস্তুত করে এবং প্রতিটি পরিবারে নগত ৩ হাজার টাকা সহ একটি কিট বক্স বিতরণের কথা বলেন। স্থানীয় উত্তরনের ম্যানেজার মাসুদ আহসান জানান, গত ১৪/১৫ তারিখ কয়রা সদর ও ১৬/১৭ তারিখ মহারাজপুর ইউনিয়নে ৪৮৬ পরিবারে ত্রাণ বিতরণ করা হয়েছে। তিনি বলেন, দক্ষিণ বেদকাশি ইউনিয়নে বৃহস্পতিবার ত্রাণ বিতরনের কথা থাকলেও হেড অফিস বন্ধ করে দিয়েছে। সূত্র জানায় মঙ্গলবার মহারাজপুর ইউনিয়নের কালনা, মহারাজপুর, দশালিয়া, মঠবাড়ী, আটরা, শ্রীরামপুর সহ একাধিক গ্রামে ২৫০ পরিবারে ৩ হাজার টাকা ও একটি করে কিট বক্স বিতরণ করা হয়। সরেজমিনে জানা গেছে, ম্যানেজার মাসুদ ও তার সহযোগি বাসার মঙ্গলবার রাতে বাড়ী বাড়ী গিয়ে গ্রাহকদের কাছ থেকে ৩ হাজার টাকা ফেরত নিয়েছেন এবং আগামীতে ১২ হাজার টাকা দেয়া হবে বলে জানিয়েছেন। বিষয়টি নিশ্চিত হতে বুধবার কালনা গ্রামে সালেহা খাতুন স্বামী সুরাত মোড়ল, নুরজাহান স্বামী মৃত সাহেব আলী, আসমা স্বামী আলাউদ্দিন, মহারাজপুর গ্রামের রুবেল পিতা জামাল গাজী, জামাল গাজী পিতা জয়নুদ্দীন গাজী সহ প্রায় ২০ টি পরিবারে খবর নিয়ে জানা গেছে বিকেলে টাকা দিয়ে সন্ধার পর ৩ হাজার টাকা ফেরত নিয়ে ম্যানেজার মাসুদ ও বাসার বলেন, এই টাকা ফেরত দিলে কিছুদিন পর ১২ হাজার পাবা। এ সম্পার্কে ম্যানেজার মাসুদের সাথে কথা বললে তিনি ঘটনার সত্যতা স্বীকার করে বলেন, আমি এর সাথে জড়িত নই। তবে বাসার ও আরো কয়েকজন এমন কাজ করেছেন বলে শুনেছেন এবং তদন্ত শুরু হয়েছে। এবিষয় উত্তরনের সহকারি সমন্বয়কারি (প্রশাসন) শম্ভু চৌধুরি জানান, বুধবার এ ধরনের অভিযোগ জানার পর ৩ সদস্যের একটি তদন্ত কমিটি গঠন করা হয়েছে এবং জড়িতদের বিরুদ্ধে কঠোর ব্যবস্থা নেওয়া হবে। কয়রা সদর ইউপি চেয়ারম্যান সাংবাদিক হুমায়ুন কবির জানান, তার ইউনিয়নে ব্যাপক অনিয়ম, দূর্নীতি করেছে উত্তরনের ম্যানেজার মাসুদ। এছাড়া তারা নিজেরাই তালিকা করে একই পরিবারে স্বামী, স্ত্রী, সহ সন্তানদের ও নামে তালিকা করে ত্রাণ দিয়েছেন।

নীলফামারীতে ক্যান্সারে আক্রান্ত কান্তরাম বাঁচতে চায়

নীলফামারীতে ক্যান্সারে আক্রান্ত কান্তরাম বাঁচতে চায়





মোঃ হাবিবুর রহমান শাকিল ডিমলা নীলফামারী প্রতিনিধি:

 নীলফামারী সদর উপজেলার লক্ষীচাপ ইউনিয়নের কচুয়া গ্রামের দিন মজুর হরেন্দ্রনাথ রায়ের দ্বিতীয় ছেলে ক্যান্সারে আক্রান্ত ১৬ বছরের কিশোর কান্তরাম রায়কে বাচাঁতে তার বাবা সমাজের বিত্ত্ববানদের কাছে আকুতি জানিয়েছেন।

 

কান্তরামের বাবা হরেন্দ্রনাথ জানান, দেড় বছর আগে দ্বিতীয় ছেলের চোখের কাছে টিউমার দেখা দিলে হোমিও প্যাথিক ঔষধ সেবন করার পর টিউমার বৃদ্ধি হলে রংপুর মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে ভর্তি করাই। সেখানে পরীক্ষা করার পর কান্তরামের মাংসপেশীতে ক্যান্সার ধরা পরে। পরে রংপুর মেডিক্যাল কলেজের চিকিৎসক ঢাকা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে রেফার্ড করে। ঢাকা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে দেড়মাস চিকিৎসা চলা অবস্থায় অপারেশন করার পর কেমথেরাপি দেওয়া হয়। বর্তমানে রেডিও থেরাপি দেওয়ার পরামর্শ দেন ডাক্তার।

 

দীর্ঘদিন  রংপুর ও ঢাকায় চিকিৎসা করায় দিনমজুর পিতা এখন নিঃস্ব । অর্থাভাবে বর্তমানে ক্যান্সার আক্রান্ত ছেলেকে বাড়ীতে নিয়ে আসে। চিকিৎসকের চিকিৎসা ব্যবস্থাপনা পত্র অনুযায়ী ঔষধ কিনতে পারছেন না তিনি। অপরদিকে রেডিও থেরাপি দেওয়া অতীব জরুরী হয়েছে।

 

কান্নাজড়িত কন্ঠে হরেন্দ্রনাথ রায় সাংবাদিকদের মাধ্যমে সমাজের বিত্তবানদের কাছে আকুল আবেদন জানিয়ে বলেন, আমার ছেলেকে আপনারা বাচাঁন! টাকার জন্য ছেলের চিকিৎসা করতে পারছি না । আপনারা আমার ছেলেকে বাঁচাতে এগিয়ে আসুন ।

 

কান্তরামের বিষয়ে লক্ষীচাপ ইউনিয়নের চেয়ারম্যান জনাব আমিনুর রহমান বলেন, আমি ব্যক্তিগতভাবে হরেন্দ্রনাথকে চিনি ও জানি । সে দিনমজুর ও তার দ্বিতীয় ছেলে ক্যান্সারে আক্রান্ত। এ রোগে যে পরিমান অর্থের প্রয়োজন তাদের পক্ষে এ ব্যায় বহন করা সম্ভব নয়। আমার সাধ্য অনুযায়ী তাদের সহযোগীতা করছি। (যোগাযোগ হরেন্দ্রনাথ রায়- ০১৭৭৩২২৫৬৮৬ (বিকাশ পার্সোনাল)।

ব্রাহ্মণবাড়িয়ায় টর্নেডোর আঘাতে ১৫ ঘর বাড়ী লন্ডভন্ড

ব্রাহ্মণবাড়িয়ায় টর্নেডোর আঘাতে ১৫ ঘর বাড়ী লন্ডভন্ড





এস.এম অলিউল্লাহ ব্রাহ্মণবাড়িয়া প্রতিনিধি

ব্রাহ্মণবাড়িয়া সদর উপজেলার বাসুদেব ইউনিয়নের আহরন্দ এলাকায় বৃহস্পতিবার সকালে ঝড়ের আঘাতে অন্তত ১৫টি ঘর-বাড়ি বিধ্বস্ত হয়েছে। এ ঘটনায় সুফিয়া বেগম (৬০) নামে এক নারী আহত হন।এলাকাবাসী সূত্রে জানা গেছে, সকাল সাড়ে ৮টার দিকে হঠাৎ করে আহরন্দ গ্রামের দক্ষিণ পাড়ায় এক মিনিটেরও কম টর্নেডোর আঘাতে ১৫টি ঘরবাড়ি বিধ্বস্ত হয়। মানুষ আতঙ্কিত হয়ে পড়ে। খবর পেয়ে সদর উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা (ইউএনও) পঙ্কজ বড়ুয়া ঘটনাস্থল পরিদর্শন করেন।আহরন্দ গ্রামের বাসিন্দা মোতালিব মিয়া জানান, সকালে তীব্র শব্দে আগুনের মতো কিছু একটা আকাশে ঘুরতে দেখেন। 


কিছু বোঝার আগেই আশপাশের ঘরবাড়ির চালা উড়িয়ে নিয়ে যেতে দেখেন তিনি।ব্রাহ্মণবাড়িয়া সদর উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা (ইউএনও) পঙ্কজ বড়ুয়া জানান, ক্ষতিগ্রস্তদের তালিকা তৈরি করে তাদেরকে পুনর্বাসনে প্রয়োজনীয় সব ধরনের ব্যবস্থা নেওয়া হবে। তাৎক্ষণিকভাবে ক্ষতিগ্রস্তদের নগদ ছয় হাজার করে টাকা এবং শুকনো খাবার দেওয়া হয়েছে

আশাশুনি থানা পুলিশের বিশেষ অভিযানে গ্রেফতার -২

আশাশুনি থানা পুলিশের বিশেষ অভিযানে গ্রেফতার -২




আহসান উল্লাহ বাবলু উপজেলা  প্রতিনিধিঃ  আশাশুনি থানা পুলিশের বিশেষ অভিযানে দুই আসামি আটক সাতক্ষীরা জেলার সুযোগ্য পুলিশ সুপার  মোহাম্মদ মোস্তাফিজুর রহমান, পিপিএম(বার) এর দিক নির্দেশনায়, সিনিয়র সহকারী পুলিশ সুপার, দেবহাটা শেখ ইয়াছিন আলী এর তত্ত্বাবধানে এবং আশাশুনি থানার অফিসার ইনচার্জ মোহাম্মাদ গোলাম কবির এর নেতৃত্বে আশাশুনি থানা এলাকায় আইন-শৃঙ্খলা রক্ষা, গ্রেফতারী পরোয়ানা তামিল ও বিশেষ অভিযান পরিচালনা কালে ইং-১৭/০৬/২০২০ তারিখ এএসআই (নিঃ) নাজিম উদ্দীন সঙ্গীয় ফোর্স এর সহায়তায় সিআর- ৫৪,৯৬,১০২,১১৯,২৮২/১৯ (ওয়ারেন্ট) মূলে আসামী আনুলিয়া ইউনিয়নের গোরালী গ্রামের জলিল গাজীর পুত্র কামাল গাজী-ও একই ইউনিয়নের বাসুদেব পুর গ্রামের মজিদ গাজীর পুত্র আল আমিন। আসামীদের নিজ নিজ এলাকা হইতে গ্রেফতার করা হয়। আসামীদ্বয়কে বিচারার্থে ইং-১৮/০৬/২০২০ তারিখ বিজ্ঞ আদালতে সোপর্দ করা হয়।

আশাশুনিতে জেলেদের মাঝে ত্রাণ সামগ্রী বিতরণ

আশাশুনিতে জেলেদের মাঝে  ত্রাণ সামগ্রী বিতরণ


 


আহসান উল্লাহ বাবলু উপজেলা প্রতিনিধিঃ   করোনা ভাইরাসের কারনে দেশ যখন স্থবির হয়ে পড়েছে, ঠিক সেই মূহর্তে আবার আম্বানের আঘাত, আর এই আঘাতে সবচেয়ে ক্ষতিগ্রস্থ এলাকা খুলনা বিভাগসহ সাতক্ষীরা উপকূলীয় এলাকা। আর সেই উপকুল এলাকার বানবাসীদের মধ্যে আশাশুনি সদর ইউনিয়ন। বৃহস্পতিবার সকালে  আশাশুনি সদর ইউনিয়নে বানবাসী জেলে কার্ড ধারীদের মাঝে প্রধানমন্ত্রীও জননেত্রী শেখ হাসিনার দেওয়া ত্রান সামগ্রী বিতারন করছেন, আশাশুনি সদর ইউনিয়নের  চেয়ারম্যান  ও উপজেলা আওয়ামীলীগের  সাংগঠনিক সম্পাদক স,ম, সেলিম রেজা মিলন। এসময় উপস্থিত ছিলেন ইউপি সদস্যগন, গ্রাম পুলিশ ও এলাকার গণ্যমান্য

ঝিনাইদহ মহেশপুরে গাঁজা সহ মাদক ব্যবসায়ী আটক

ঝিনাইদহ মহেশপুরে গাঁজা সহ মাদক ব্যবসায়ী আটক
 



খোন্দকার আব্দুল্লাহ বাশার, ঝিনাইদহ জেলা প্রতিনিধি। 



মহেশপুর থানা পুলিশ বিশেষ অভিযান পরিচালনাকালে অদ্য ইং ১৭ জুন বুধবার  মহেশপুর থানাধীন ভৈরবা গ্রামস্থ মহেশপুর টু ভৈরবা গামী পাকা রাস্তা সংলগ্ন ভৈরবা পেট্রোল পাম্পের সামনে পাকা রাস্তার উপর হইতে আসামী শ্রী পূর্ণ হালদার(২০), পিতা- লালন হালদার, সাং- কাজীরবেড় উত্তরপাড়া, থানা- মহেশপুর, জেলা- ঝিনাইদহকে ০১ (এক) কেজি গাঁজা সহ গ্রেফতার করেন।

চিলগাছা কুড়ালিয়া দাখিল মাদ্রাসার উদ্যোগে মোহাম্মাদ নাসিমের আত্নার মাগফিরাত কামনায় দোয়া

চিলগাছা কুড়ালিয়া দাখিল মাদ্রাসার উদ্যোগে মোহাম্মাদ নাসিমের আত্নার  মাগফিরাত কামনায় দোয়া
  



মাসুদ রানা সিরাজগঞ্জ প্রতিনিধিঃ   চিলগাছা কুড়ালিয়া দাখিল মাদ্রাসার উদ্যেগে মোহাম্মদ নাসিম এর আত্তার মাগফিরাত কামনা ও দোয়ার মাহফিল করেন। সাববেক স্বাস্থ্যমন্ত্রী ও বাংলাদেশ আ.লীগের প্রেসিডিয়াম সদস্য মোহাম্মদ নাসিমের মৃত্যতে তার আত্তার মাগফিরাত কামনায় চিলগাছা কুড়ালিয়া দাখিল মাদ্রাসার উদ্যেগে বৃহসপতিবার সকাল দশ টায় দোয়ার মাহফিল  আয়োজন করেন অত্র মাদ্রাসার সুপার  জাহাঙ্গীর আলমের  এর সভ্পত্তিতে
দোয়ার মাহফিলের মোনাজাত করান মাওলানা মোঃ শাহাজামাল সাহেব, পরিচালনা করেন পাঁচ নং ওয়াড আওয়ামীলীগের সভাপতি আঃছাত্তার ও সাধারন সম্পাদক মুকুল হোসেন , এ সময় উপস্থিত ছিলেন, জেলা পরিষদের সদস্য আলহাজ্জ্ব গোলাম রব্বানী তালুকদার,
  রতনকান্দি ইউপি চেয়ারম্যান আনোয়ার হোসেন, ইউনিয়ন আওয়ামীলীগের ভারপ্রাপ্ত সভাপতি সাইদুল ইসলাম জুড়ান, ইউনিয়ন আওয়ামীলীগের সাংগঠনিক সম্পাদক আলী হোসেন, যুগ্ন সাধারণ সম্পাদক মোঃ বিপ্লব হোসেন,ইউনিয়ন মুক্তিযোদ্ধা কমান্ডার সাইদুল ইসলাম,সাবেক ছাএ নেতা নুরে আলম রতন,সদর উপোজের আওয়ামী সেচ্ছাসেবগ লীগের ছিনিয়ার সহ সভাপতি  এম এইস মিল্টন, ইউনিয়ন যুবলীগের সভাপতি মোঃ জাহাঙ্গীর আলম, সাধারণ সম্পদক বুলবুল আহম্মেদ ভুট্টু, আওয়ামী সেচ্ছাসেবক লীগের ভারপ্রাপ্ত সভাপতি সোহেল রানা,  ইউনিয়ন ছাত্রলীগের সভাপতি আব্দুল আলীম খাঁন, ইউনিয়ন ছাত্রলীগের সাধারণ সম্পদক জাকিরুল ইসলাম বাবু সহ সকল সহ যোগি সংগঠনের নেতৃী বৃন্দু ও জনগনের এক অংশ।
  এসময় তারা বলেন আমাদের উত্তর বঙ্গের অভিবাগকে হারিয়েছি তার আত্তার   মাগফিরাত কামনায় এক মাসের কর্ম সুচি ঘোসনা করা হয়েছে আজ তার তৃতিয় দিন আল্লাহর কাছে প্রাথনা যেন আমাদের সুস্থ রাখে আমরা যেন এই এক মাসের কর্ম সুচি পালন করতে পারি।আমাদের প্রিয় অভিবাকে আল্লাহ যেন বেহস্তনসিব করেন।

দেশে করোনায় নতুন মৃত্যু -৩৮!

দেশে করোনায় নতুন মৃত্যু -৩৮!



নিউজ ডেস্কঃ আজ (১৮ জুন) ১৬২৫৯ নমুনা পরীক্ষায় ৩৮০৩ জনের করোনা শনাক্ত।মৃত্যু - ৩৮ জন, এ পর্যন্ত মোট প্রাণহানি ১৩৪৩ জন।অপর দিকে সারা দেশে এ পর্যন্ত ১,০২২৯২ জনের করোনা শনাক্ত।
নমুনা পরীক্ষার তুলনায় শনাক্তের হার ২৩.৩৯।
২৪ ঘণ্টায় সুস্থ ১৯৭৫ জন, মোট সুস্থ ৪০১৬৪।

নাটোরে মাধ্যমিক শিক্ষা অফিসার সড়ক দুর্ঘটনায় নিহত

নাটোরে মাধ্যমিক শিক্ষা অফিসার সড়ক দুর্ঘটনায় নিহত




রাজশাহী ব্যুরো
নাটোরের লালপুর উপজেলার মাধ্যমিক শিক্ষা অফিসার আশরাফ আলী সড়ক দুর্ঘটনায় গতকাল বুধবার (১৭ জুন) মৃত্যুবরন করেছেন। (ইন্না লিল্লাহি ওয়া ইন্না ইলাইহি রাজিউন)। নিহতের বাড়ি পাবনার সুজানগর এলাকায়।
 গতকাল বুধবার সকালে সিএনজি যোগে লালপুর আসার পথে পাবনার দাশুড়িয়ায় বেলা ১১ টার দিকে তিনি সড়ক দুর্ঘটনায় আহত হন। গুরুতর আহতাবস্থায় প্রথমে ঈশ্বরদী উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে নিয়ে যায় স্থানীয়রা। কর্তব্যরত চিকিৎসক উন্নত চিকিৎসার জন্য পাবনা সদর হাসপাতালে প্রেরন করেন। সেখানে চিকিৎসাধীন অবস্থায় বেলা ৩ টার দিকে শেষ নিঃশ্বাস ত্যাগ করেন।

লালপুর উপজেলা মাধ্যমিক শিক্ষা কর্মকর্তার অকাল মৃত্যুতে শোক প্রকাশ করে নিহতের আত্মার মাগফেরাত কামনা করেছেন নাটোর -১ আসনের সংসদ সদস্য শহিদুল ইসলাম বকুল, সাবেক সংসদ সদস্য ও নাটোর জেলা আ.লীগের সিনিয়র সহ-সভাপতি এডভোকেট আবুল কালাম আজাদ, লালপুর উপজেলা পরিষদ চেয়ারম্যান ইসাহাক আলী, উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা উম্মুল বানীন দ্যুতি, লালপুর উপজেলা আওয়ামীলীগ সভাপতি আফতাব হোসেন ঝুলফু, লালপুর উপজেলা একাডেমিক সুপারভাইজার সাদ আহমেদ শিবলী, দৈনিক যুগান্তরের লালপুর প্রতিনিধি প্রভাষক সাহীন ইসলাম, মাধ্যমিক শিক্ষক সমিতির নেতা অধ্যক্ষ হযরত আলী, সালাউদ্দিন, সভাপতি জাতীয় সাংবাদিক সংস্থা লালপুর উপজেলা শাখা, মাজহারুল ইসলাম লিটন, লালপুর উপজেলা প্রেসক্লাব সভাপতি আব্দুল মোত্তালেব রায়হান, সাধারন সম্পাদক প্রভাষক মোয়াজ্জেম হোসেন সহ বিভিন্ন শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের প্রধান গন।

নাটোরে ডাক্তার এবং স্বাস্থ্যকর্মী সহ নতুন ৮ জন করোনায় আক্রান্ত

নাটোরে ডাক্তার এবং স্বাস্থ্যকর্মী সহ নতুন ৮ জন করোনায় আক্রান্ত





রাজশাহী ব্যুরো
রাজশাহী মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে নমুনা দেওয়া ৬ জন এবং ঢাকা থেকে ২ জন নিয়ে নাটোর জেলায় মোট ৮ জন করোনায় আক্রান্ত হয়েছে। এদের মধ্যে সদর হাসপাতালের একজন ডাক্তার এবং বড়াইগ্রামের একজন স্বাস্থ্যকর্মী রয়েছেন। নাটোর জেলার সিভিল সার্জন বিষয়টি নিশ্চিত করে বলেন,নাটোর সদর উপজেলার ৩ জন (সদর হাসপাতালের চিকিৎসক,উত্তর বড়গাছার একজন এবং চাঁদপুরে একজন),বড়াইগ্রাম উপজেলায় ২ জন ( নগর ইউনিয়নের দ্বারখৈলে স্বাস্থ্যকর্মী,চান্দাই ইউনিয়নের রাজেন্দ্রপুরের একজন),গুরদাসপুর উপজেলায় ৩জন ( চাঁচকৈড়ের খলিফা পাড়ায় একজন এবং পুরান পাড়ায় দুইজন)। এর মধ্যে সদর হাসপাতালের চিকিৎসক বর্তমানে ঢাকায় অবস্থান করছে। বাকীদের বাড়ি লকডাউন সহ সবধরনের ব্যবস্থা গ্রহনের প্রক্রিয়া চলমান রয়েছে।

ঝিনাইদহ শৈলকূপায় দু'গ্রুপের সংঘর্ষে আহত ১৪; আটক ৮

ঝিনাইদহ শৈলকূপায় দু'গ্রুপের সংঘর্ষে আহত ১৪; আটক ৮





খোন্দকার আব্দুল্লাহ বাশার, ঝিনাইদহ জেলা প্রতিনিধি 



ঝিনাইদহ জেলার শৈলকুপা উপজেলার নিত্যনন্দনপুর ইউনিয়নের শেখরা গ্রামে আধিপত্য বিস্তারকে কেন্দ্র করে প্রতি পক্ষের হামলায় ৬ জন আহত হয়ে ঝিনাইদহ সদর হাসপাতালে ভর্তি হয়েছে।

হামলায় আহতরা হলেন শেখরা গ্রামের মজিবর শেখের দুই ছেলে উমর আলী শেখ( ৪৫) ও ডাবলু শেখ। অন্যরা হলেন ইব্রাহিম মোল্লার ছেলে জরাফত মোল্লা (৫৫), খেলাফত শেখের ছেলে সালামত শেখ (৪৬) গফুর মোল্লার ছেলে মিজানুর মোল্লা( ৪৬) আখতার মোল্লার ছেলে বাবু মোল্লা (৩৫)। শৈলকুপা হাসপাতালে ভর্তি আছে আরো ৮ জন।

শেখরা গ্রামের হাসমত ও শাহাদত জানায় যে বুধবার সকাল ১০ টার দিকে উমর আলী শেখ টিউবল ক্রয় করার জন্য শেখরা বাজারে যায়। এই সময়ে ঐ গ্রামের মতিনের নেতৃত্বে প্রায় ২০/৩০ জনের একটি দল উমর আলীর উপর হামলা চালায়। হামলা চালানর পর গফুর, সিদ্দিক ও মনিরুলের বাড়ি ভাংচুর করতে থাকে।

তাদের বাড়ি ভাংচুরের বাধা দিলে এই সময়ে বাধা দান কারীদের উপর হামলা চালায়। তখন বাকী ৫ জন আহত হয়।

তারা আরও বলে যে নির্বাচনের পর থেকেই এদের বাড়ি উঠতে বাধা দেওয়া হচ্ছিল।


এলাকাবাসী সুত্রে জানা যায়, উমর আলী শেখ বাড়িতে আসার পর আজ সকালে সংঘর্ষ হয়। এই সংঘর্ষে উমর আলীর প্রতিপক্ষ দলের ৭ জন আহত হয়ে শৈলকুপা উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ভর্তি আছে।

নিত্যনন্দনপুর ইউনিয়নের বর্তমান চেয়ারম্যান ফারুক হোসেন বলেন, বিগত ৩ দিন আগে ঝিনাইদহ জেলার পুলিশ সুপার মহোদয়ের সামনে আমি ও সাবেক চেয়ারম্যান মফিজ উদ্দিন প্রতিশ্রুতি দিয়েছি ইউনিয়নে কোন প্রকার সংঘর্ষ না করে শান্তি শৃঙ্খলা বজায় রাখবো। আমার সেই প্রতিশ্রুতি যাহাতে না থাকে তার কারনেই আজ সম্পূর্ণ বিনা উসকানিতে এই সংঘর্ষের সুচনা করেছে। আমি সকল সময় চেষ্টা করি যাহাতে ইউনিয়নে শান্তি শৃঙ্খলা বজায় থাকে। আমার প্রতিপক্ষ দল সর্বদা অশান্তি সৃষ্টির চেষ্টা করে বলে সে দাবী করে।

এই বিষয় নিয়ে শৈলকুপা থানায় এখনো কোনো মামলা হয়নি।

ইচ্ছে ঘূড়ি কর্নার আপনার হাতে পৌঁছে দিচ্ছে সব ধরনের বই "

ইচ্ছে ঘূড়ি কর্নার আপনার হাতে পৌঁছে দিচ্ছে সব ধরনের বই "




মোঃ আওলাদ হোসেন
জেলা প্রতিনিধি ভোলা,দৌলতখান। 


পৃথিবী ব্যাপী যখন অনেকেই চলছে না স্বার্থ ছাড়া,এমন মূহুর্তে বই পিপাসুদের তৃষ্ণা মিটানোর জন্য মাঠে আছে একেবারে বিনা স্বার্থে ইচ্ছে ঘূড়ির এক ঝাঁক তরুন সেবক।
ইচ্ছে ঘূড়ির সংশ্লিষ্ট কর্মকর্তা দৈনিক উপকূল বার্তাকে বলেন,আমরা চেষ্টা করছি সমাজের মানুষদের জন্য কিছু একটু সেবা করা।কেউ না জানার কথা নয় যে,বর্তমান পৃথিবীতে প্রায় সব গুলো দেশ করোনা ভাইরাস তথা COVID 19 এ আক্রান্ত। বাংলাদেশ ও এর বাহিরে নয়।এমন পরিস্থিতিতে অধিকাংশ মানুষ  নিজেকে সেইফ রাখার জন্য হোম কোয়ারান্টাইনে অবস্থান করছেন।
তাই আমরা ভাবছি,যারা বই ভালোবাসেন মনের পিপাসা মিটানোর জন্য, কেউ বা প্রাতিষ্ঠানিক ভালো ফলাফলের জন্য, আবার অনেকেই প্রতিযোগিতা মূলক চাকুরীর পরীক্ষার জন্য।যারা সঠিক সময়ে কাঙ্খিত বই পাচ্ছেন না,সে সকল প্রার্থীদের বিশেষ শর্তে একেবারে সম্পূর্ণ ফ্রী সার্ভিস চার্জে ইচ্ছে ঘূড়ি কর্নার বাসায় পৌঁছে দিচ্ছে সব ধরনের বই । 
ইচ্ছে ঘূড়ির মার্কেটিং অফিসার বলেন,আমরা সব সময়ই চাচ্ছি নিজেকে পুরোপুরি বিলিয়ে দিতে মানুষের সেবায়।ভোলা জেলার সর্বত্র আমাদের বেশকিছু স্বেচ্ছাসেবক ভাই আছেন, যারা সমসময়ই কোন না কোন সংগঠনের সাথে যুক্ত হয়ে বিভিন্ন কর্মসূচিতে অংশগ্রহণ করেন,যেমন ব্লাড ফাউন্ডেশন,করোনা মোকাবেলায় সচেতনতা সৃষ্টি, গরীব মেধাবী শিক্ষার্থীদের বিভিন্ন রকম সহাযোগীতা।
মূলত এই স্বেচ্ছাসেবক ভাইয়েরা বেশ কিছু কার্যক্রম অব্যাহত রেখেছেন।
তবে এখন আমরা সবচেয়ে বেশী ভূমিকা রেখেছি করোনা কালীন বই পিপাসুদের হাতে তাদের চাহিদা মাফিক বই পৌঁছে দেওয়া। এখন করোনা মহামারীতে অনেকেই ঘর থেকে বের হচ্ছেন না।আবার বের হলেও প্রয়োজনীয় অনেক বই পাশ্ববর্তী লাইব্রেরিতে পাচ্ছেন না।তার কারন ক্যারিং খরচ এখন বেশি পরছে,যার দরুন ব্যাবসায়ীরা তাদের টার্গেট মত লাভ পাচ্ছে না।সেই কারনে অনেক বই পিপাসু বই কিনছে না।করোনা কালীন বাসায় বসে বসে অলস সময় কাটাচ্ছে। এসব কথা গুলো বিবেচনা করে ইচ্ছে ঘূড়ির সেচ্ছাসেবক দল ভোলার যে কোন প্রান্তে পৌঁছে দিচ্ছে সব ধরনের বই।
কারো যে কোন ধরনের বই লাগলে আমাদের এই নম্বরে যোগাযোগ করুন, ০১৭২৩২৯৬৯১০। আমরা সর্বোচ্ছ  চেষ্টা করবো আপনার হাতে বই পৌঁছে দিতে।
আমাদের স্লোগান " আপনি থাকুন বাসায় নিরাপদে,আপনার প্রয়োজনে আমরা আছি বাহিরে "

কেশবপুরে সড়ক দূর্ঘটনায় ট্রলি চালক নিহত

কেশবপুরে সড়ক দূর্ঘটনায় ট্রলি চালক নিহত






মোরেশেদ আলম
(যশোর) ভ্রাম্যমান প্রতিনিধি

যশোর কেশবপুরে সড়ক দূর্ঘটনায় আলমগীর হোসেন (৩২) নামে এক  ট্রলি চালক নিহত হয়েছে।

এলাকাবাসি সূত্রে জানাগেছে, বুধবার বিকালে উপজেলার জাহানপুর গ্রামের আব্দুল করিম সরদাদের পূত্র আলমগীর হোসেন বালি ভর্তি ট্রলি চালিয়ে জাহানপুর থেকে সাতবাড়িয়া অভিমুখে যাচ্ছিল।

 জাহানপুর বাজারে কাছে আসলে ট্রলির এক্সেল ভেঙ্গে আলমগীর মারাত্তক আহত হয় এবস্থায় প্রথমে তাকে কেশবপুর হাসপাতালে পরে খুলনা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে নেওয়ার পথে আলমগীর হোসেনের মৃত্যু হয়। আলমগীরের মৃত্যুতে এলাকায় শোকের ছায়া নেমে এসেছে।