আনোয়ার হোসেন প্রেসিডিয়াম সদস্য নির্বাচিত হওয়ায় চৌগাছায় আনন্দ মিছিল

আনোয়ার হোসেন প্রেসিডিয়াম সদস্য নির্বাচিত হওয়ায় চৌগাছায় আনন্দ মিছিল

চৌগাছা (যশোর) প্রতিনিধিঃ

যশোরের কৃতিসন্তান সাবেক ছাত্রলীগ নেতা ও কেন্দ্রীয় আওয়ামী যুবলীগের সাবেক কৃষি ও সমবায় বিষয়ক সম্পাদক আনোয়ার হোসেনকে বাংলাদেশ আওয়ামী যুবলীগের কেন্দ্রীয় কমিটির প্রেসিডিয়াম সদস্য নির্বাচিত করায় প্রধানমন্ত্রী দেশরত্ন শেখ হাসিনাকে শুভেচ্ছা ও অভিনন্দন জানিয়ে আনন্দ মিছিল করেছেন চৌগাছা উপজেলা আওয়ামী যুবলীগ।

মঙ্গলবার বিকালে উপজেলা আওয়ামী যুবলীগের আয়োজনে উপজেলা আওয়ামী লীগের দলীয় কার্যালয় থেকে বিশাল আনন্দ মিছিল অনুষ্ঠিত হয়, দলীয় কার্যলয় থেকে বাজারের প্রধান সড়ক ঘুরে আবার উপজেলা আওয়ামী লীগের কার্যালয়ে গিয়ে শেষ হয়।

এ সময় মিছিলটি নেতৃত্বে দেন উপজেলা আওয়ামী যুবলীগের সাবেক সভাপতি ও চৌগাছা সদর ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান রফিকুল ইসলাম, সাবেক সিনিয়র সহ-সভাপতি মোস্তাফিজুর রহমান বাবুল, উপজেলা যুবলীগের বর্তমান কমিটির যুগ্ম আহবায়ক শরিফুল ইসলাম ও কাউন্সিলর আনিচুর রহমান, সাবেক সাংগঠনিক সম্পাদক ও আহবায়ক কমিটির সদস্য দেওয়ান আনিছুর রহমান, উপজেলা আওয়ামী লীগের নির্বাহী কমিটির সদস্য ও যশোর সরকারি এমএম কলেজ ছাত্রলীগের সাবেক সাধারণ সম্পাদক আশরাফুল আলম, নির্বাহী সদস্য এসএম রেজওয়ান হাবিব আলিফ, উপজেলা ছাত্রলীগের সাধারণ সম্পাদক বিএম শফিকুজ্জামান রাজু প্রমুখ।

এছাড়া উপজেলা যুব মহিলা লীগের সাধারণ সম্পাদক নাছিমা খাতুন, ইউপি সদস্য খন্দকার বাবুল, যুবলীগ নেতা মইনুর রহমান, কবীর হোসেন, সজল আহাম্মেদ, ইউসূফ আলী, আক্তারুজ্জামান মিলন, ইউপি সদস্য তৌহিদুজ্জামান মিঠু, ইদ্রিস আলী, উপজেলা ছাত্রলীগের সহ-সভাপতি সাদেকুর রহমান, সাংগঠনিক সম্পাদক রাজু আহাম্মেদ, দপ্তর সম্পাদক হাশেম আলী, সরকারি কলেজ ছাত্রলীগের সভাপতি আশিকুজ্জামান রিংকু, সাধারণ সম্পাদক মিকাইল ইসলাম সোহেল, চৌগাছা ইউনিয়ন ছাত্রলীগের আহবায়ক আকরামুল ইসলাম, যুগ্ম আহবায়ক জিহাদ হোসেন, পাতিবিলা ইউনিয়ন ছাত্রলীগের আহবায়ক বিএম আলমগীর হোসেন, পাশাপোল ইউনিয়ন ছাত্রলীগের সাধারণ সম্পাদক প্রভাষক সবুজ হোসেন, নারায়নপুর ইউনিয়ন ছাত্রলীগের আহবায়ক আমজেদ হোসেন, উপজেলা ছাত্রলীগ নেতা সাইফুল ইসলাম সুমন, হাসান রেজা, পৌর ছাত্রলীগ নেতা সৌরভ রহমান বিপুল,জিসাদ সহ উপজেলার বিভিন্ন ইউনিয়ন ও ওয়ার্ড যুবলীগের বিভিন্ন স্থরের নেতৃবৃন্দ।

আনোয়ার হোসেন প্রেসিডিয়াম সদস্য ও অমিত সদস্য নির্বাচিত হওয়ায় অভিনন্দন ও শুভেচছা

 আনোয়ার হোসেন প্রেসিডিয়াম সদস্য ও অমিত সদস্য  নির্বাচিত হওয়ায় অভিনন্দন ও শুভেচছা

 


প্রেস বিজ্ঞপ্তিঃ ঝিকরগাছার ও চৌগাছার  কৃতিসন্তান প্রিয় বড় ভাই আনোয়ার হোসেন বাংলাদেশ আওয়ামী যু্বলীগের কেন্দ্রীয় কমিটির প্রেসিডিয়াম সদস্য এবং ছোট ভাই অমিত কুমার বসু কে সদস্য করায় চৌগাছা উপজেলা যুবলীগের আয়োজনে   আজকের বিশাল  আনন্দ মিছিলে  শতাধিক মোটর বাইক সহ মিছিলে যোগদান করেন ২ নং পাশাপোল ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান পদপ্রার্থী  কামরুজ্জামান কামাল। এই আনন্দ মিছিলের মাধ্যমে তিনি জননেত্রী শেখ হাসিনা কে কৃতজ্ঞতা  জ্ঞাপন ও দুই নেতাকে অভিনন্দন ও শুভেচছা জানান।

ফ্রান্স বিরোধী পোস্ট দেওয়ায় ১৫ বাংলাদেশিকে ফেরত পাঠাল সিঙ্গাপুর

 ফ্রান্স বিরোধী পোস্ট দেওয়ায় ১৫ বাংলাদেশিকে ফেরত পাঠাল সিঙ্গাপুর


তাহের সরকার, সিংগাপুরঃ ফ্রান্স সংগঠিত সন্ত্রাসী হামলা নিয়ে সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে প্রতিক্রিয়া দেওয়ায় ১৫ বাংলাদেশিকে ফেরত পাঠিয়েছে সিঙ্গাপুর। সিঙ্গাপুর কর্তৃপক্ষ জানায়, সহিংস পরিবেশ সৃষ্টি এবং সাম্প্রদায়িক অশান্তি উসকে দিতে এই উগ্র পোস্টগুলি করা হয়েছিল।

সাম্প্রতিক সময়ে সন্ত্রাসী হামলার ঝুঁকিতে রয়েছে ফ্রান্স। শিক্ষার্থীদের মহানবী (সা.) এর ব্যঙ্গ কার্টুন দেখানোর অভিযোগে অক্টোবরে এক শিক্ষকের শিরশ্ছেদ করা হয়। ওই মাসের শেষের দিকে নিস গির্জার সামনে এক নারীকে শিরচ্ছেদ ও দুই জনকে ছুরিকাঘাতে হত্যা করে।

কার্টুন প্রকাশ ও তার পক্ষে অবস্থান নিয়ে ফ্রান্সের প্রেসিডেন্ট ম্যাক্রোঁ বক্তব্য দেওয়ায় বাংলাদেশসহ সংখ্যাগরিষ্ঠ মুসলিম দেশগুলোতে বিক্ষোভ শুরু হয়। বাংলাদেশে এর প্রতিবাদে প্রায় ১০ হাজার মানুষ রাস্তায় নামে।

এ বিষয়ে সেপ্টেম্বরের শুরু থেকে সিঙ্গাপুরের নিরাপত্তা সংস্থাগুলো সতর্কতা অবলম্বন করে। তাদের করা তদন্ত প্রতিবেদনের আলোকে বাংলাদেশিদের ফেরত পাঠানো হয়েছে বলে সিঙ্গাপুরের স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয় জানায়।

মন্ত্রণালয় এক বিবৃতিতে বলেছে, এদের মধ্যে বেশিরভাগ নির্মাণ শ্রমিক। তারা সামাজিক যোগাযোগমাধ্যম পোস্ট করে সাম্প্রদায়িক অস্থিরতা সৃষ্টি ও সহিংসতাকে উসকে দেওয়া চেষ্টা করেছিলো।  তবে পোস্টগুলিতে কি কি বিষয় ছিল তা উল্লেখ করেনি মন্ত্রণালয়। এখানে দক্ষিণ এশিয়া থেকে আসা প্রায় তিন লাখ  শ্রমিক রয়েছেন। তারা বেশিরভাগই স্বল্প বেতনভুক্ত অভিবাসী শ্রমিক, যার মধ্যে রয়েছে নির্মাণ শ্রমিকসহ শিল্প কারখানায় কাজ করা শ্রমিক।

আরও পড়ুনঃ  মিস করছি প্রিয় ক্যাম্পাস ও বন্ধুদের

জমি নিয়ে বিরোধে হামলার শিকার জবি শিক্ষার্থী

জমি নিয়ে বিরোধে হামলার শিকার জবি শিক্ষার্থী


নিউজ ডেস্কঃ মাদারীপুর জেলার রাজৈরে জমি জমার জের ধরে দূর্বৃত্তদের হামলার শিকার হয়ে আহত হয়েছে জগন্নাথ বিশ্ববিদ্যালয়ের (জবি) এক শিক্ষার্থী শিক্ষার্থী ও তার পরিবার। ভুক্তোভোগী সুমন বিশ্ববিদ্যালয়ের আইন বিভাগের  ২০১৬-১৭ শিক্ষাবর্ষের শিক্ষার্থী। 

২৪ নভেম্বর (মঙ্গলবার) সকাল নয়টার দিকে জমির দখল নিয়ে কয়েকজন দূর্বৃত্ত সুমন ও তার পরিবারের উপর হামলা করে। পরে আহত অবস্থায় সুমনকে রাজৈর হাসপাতালে ভর্তি করা হয়। এঘটনায় রাজৈর থানায় মামলা করেছে ভুক্তভোগীরা।

হামলার শিকার হওয়া শিক্ষার্থী সুমন জানান, আমদের জমিতে থাকতে দেওয়া হচ্ছিলোনা গত মাস থেকেই। এর আগেও ওরা হামলা চালায় ইট পাটকেল ছোড়ে এবং জীবন নাশের হুমকি দেয় আমারা বিষয়টি থানার ওসিকে বিষয়টি জানাই। পরে পুলিশ একটা ব্যবস্থা করে তাদের আমাদের জমিতে আসতে মানা করে। এরপরও তারা আমাদের জমিতে আসে ও হুমকি দিতে থাকে।আমরা আবার থানায় যোগাযোগ করলে, জিডি করতে বলা হয়।  আজকে সকালে হঠাৎ ইয়াসিন, ইবরাহিম, নিজাম, মোস্তফা, হাবিব আর তাদের পিতা কালাম মুন্সি, সাত্তার মুন্সি, করম মুন্সি এরা দাড়িয়ে ছিল মাইর চলা অবস্থা এক মহিলা ও তার ছেলে মিলে আমাকে তাদের হাত থেকে রক্ষা করে। আমার বাড়িতে যায় আর হুমকি দিয়ে আসে আমার বাবাকে ঘর থেকে টেনে বের করে। পরে  প্রায় আধা ঘন্টাপর পুলিশ এলে তারা সরে পরে। 

হামলা ও গ্রেফতারের বিষয়ে রাজৈর থানার ওসি মো শেখ সাদিক বলেন,  হামলার বিষয়টি জানানোর সাথে সাথেই ঘটনাস্থলে আমরা  লোক পাঠিয়েছি। বিষয়টি প্রক্রিয়াধীন রয়েছে।  দোষীদের আইন অনুযায়ী যথাযথ ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে। 

এ বিষয়ে বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রক্টর  মোস্তফা কামাল বলেন, আমাদের বিশ্ববিদ্যালয়ের ১২তম ব্যাচের ঐ শিক্ষার্থীর উপর হামলার বিষয়টি নিয়ে অবগত আছেন ও স্থানীয় রাজৈর থানা প্রশাসনের সাথে কথা বলে যথাযথ পদক্ষেপ নিতে বলা হয়েছে।

মিস করছি প্রিয় ক্যাম্পাস ও বন্ধুদের

মিস করছি প্রিয় ক্যাম্পাস ও বন্ধুদের



পুরাণ ঢাকার ঐতিহ্যবাহী জগন্নাথ বিশ্ববিদ্যালয়ের পূর্ব নাম জগন্নাথ কলেজ। বিংশ শতাব্দীর অধিকাংশ সময় জুড়ে এই নামেই পরিচিত ছিল। ১৮৫৮ সালে ঢাকা ব্রাক্ষ্ম স্কুল নামে এর প্রতিষ্ঠা হয়। বালিয়াটির জমিদার ১৮৭২ সালে এর নাম বদলে জগন্নাথ স্কুল নামকরণ করেন। ১৮৮৪ সালে এটি একটি দ্বিতীয় শ্রেণীর কলেজ এবং ১৯০৮ সালে প্রথম শ্রেণীর কলেজে পরিণত হয়। ২০০৫ সালে জাতীয় সংসদে জগন্নাথ বিশ্ববিদ্যালয় আইন-২০০৫ পাশের মাধ্যমে একটি পুর্ণাঙ্গ বিশ্ববিদ্যালয়ে রূপান্তরিত হয়। ৭ একরের  বিশ্ববিদ্যালয়ে ৩৬ টি বিভাগ ও ২ টি ইন্সিটিউট রয়েছ। এর মধ্যে ২১০০০ বর্গফুটের একটি বিভাগ রয়েছে যার নাম একাউন্টিং এন্ড ইনফরমেশন সিস্টেমস বিভাগ। বিভাগটিতে  সকাল ৮:৩০ থেকে ৩:৩০ পর্যন্ত ব্যস্ততা লেগে থাকত। কোনো ব্যাচ ক্লাস করতে ব্যস্ত থাকতো, কেউ কেউ আবার এসাইনমেন্ট, প্রেজেন্টেশন নিয়ে ব্যস্ত। বিভাগের সেমিনার সবসময় পরিপূর্ণ থাকতো শিক্ষার্থীদের পড়াশোনার মধ্যে দিয়ে। একটু অবসর হলে শিক্ষার্থীরা চলে যেত ওপেন সেমিনারে। কেউ কেউ ওপেন সেমিনারে বসে গল্প করতো, আড্ডা দিত, আবার কেউ কেউ পড়াশোনা করতো। আড্ডা আর পড়াশোনার ফাঁকে ফাঁকে নোটিশ বোর্ডের দিকে তাকাতো এটা দেখতে যে কোনো নোটিশ আছে কি না। ডিপার্টমেন্টের কম্পিউটার ল্যাবে সারাদিন ব্যস্ততা থাকতো কেউ বা কোনো দরকারি কাজে আবার কেউ বা কার্টুন দেখতো। ডিপার্টমেন্টের শিক্ষার্থীরা পড়াশোনার পাশাপাশি বিতর্ক, সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠান নিয়েও ব্যস্ত থাকতো। সব শিক্ষার্থীদের মধ্যে ১৪ তম আবর্তনের বি সেকশনের শিক্ষার্থীরা মেতে থাকতো এক অন্যরকম আমেজে। ক্লাসের ফাঁকে ফাঁকে আড্ডা, বন্ধুদের জন্মদিন পালন আরো কত কি! কিন্তু করোনা নামক কালো ছায়া তাদের সব আনন্দ বন্ধ করে দিয়েছে। এখন সবাই গৃহ বন্দি। সবাই অপেক্ষা করছে আবার কবে আনন্দের জোয়ারে ভাসবে!

হিরা সুলতানা
জগন্নাথ বিশ্ববিদ্যালয়

কুষ্টিয়ার দৌলতপুরে ফেন্সিডিল সহ এক মাদক কারবারীকে আটক করেছে পুলিশ

কুষ্টিয়ার দৌলতপুরে  ফেন্সিডিল সহ এক  মাদক কারবারীকে আটক করেছে পুলিশ


কুষ্টিয়া জেলা প্রতিনিধি //
এম,ডি,আল  আসিবুজ্জামান চঞ্চলঃ

আজ ২৪ নভেম্বর সকালে হোসেনাবাদ পুলিশ ক্যাম্পের অভিযানে  হোসেনাবাদ  মাঠের মধ্যে থেকে পাংশা,বাজবাড়ীর ছলিম শেখের ছেলে হিরোন শেখ কে (৩৫)  ৫২ বোতল ফেন্সিডিল  সহ আটক করে  দৌলতপুর থানার হোসেনাবাদ  পুলিশ ফাড়ি। 
পুলিশ সূত্রে জানা যায়,গোপন সংবাদের ভিত্তিতে অভিযান চালালে ৫২ বোতল ইন্ডিয়ান ফেন্সিডিল সহ ১জনকে আটক করে দৌলতপুর থানা পুলিশ।  এ ঘটনায় দৌলতপুর থানায় মাদক আইন ১৪ গ/ ৮গ  ধারায়  একটি মামলা দায়ের হয়েছে যার নং  নম্বরঃ ৪৬ তাং ২৪/১১/২০২০।

কুমিল্লার হোমনায় সাবেক ভাইস চেয়ারম্যান মাজেদুল ইসলাম আর নেই, দাফন সম্পন্ন

কুমিল্লার হোমনায় সাবেক ভাইস চেয়ারম্যান মাজেদুল ইসলাম  আর নেই, দাফন সম্পন্ন


শাহ আলম জাহাঙ্গীর
ব্যুরো চিফ,কুমিল্লা

কুমিল্লার হোমনায় সাবেক ভাইস চেয়ারম্যান ও প্রবীণ রাজনীতিবিদ   হাজী মাজেদুল ইসলাম জীবন (৭২) সম্পন্ন  হয়েছে  গতকাল  সোমবার রাত সাড়ে ১০ টার দিকে কুমিল্লা একটি হাসপাতালে চিকিৎসাধীন অবস্থায় ইন্তেকাল করেন ( ইন্না-লিল্লাহে ওয়া ইন্না  ইলাইহে রাজেউন)  । 

 আজ মঙ্গলবার ১১ টায় উপজেলা পরিষদ মাঠে প্রথম জানাযা এবং বাদ জোহর  কৃষ্ণপুর নিজ গ্রামে দ্বিতীয় জানাযা শেষে পারিবারিক কবরস্থানে দাফন করা হয় । মৃত্যুকালে তিনি স্ত্রী, ৩ ছেলে ও ১ মেয়েসহ অসংখ্য গুণগ্রাহী ও রাজনৈতিক শুভাকাঙ্ক্ষী রেখে গেছেন ।তিনি 'অনন্তপুর হাজী  মাজেদুল ইসলাম দাখিল মাদ্রসার' প্রতিষ্ঠাতা,কাশিপুর হাসেমিয়া উচ্চ বিদ্যালয়ের সাবেক সভাপতি ও আজীবন দাতা সদস্য  এবং উপজেলা বিএনপির সহ-সভাপতি ছিলেন । 
মরহুমের জানাযায় স্মৃতিচারণমূলক বক্তব্য রাখেন মরহুমের বড় ছেলে আলম মিয়া, কুমিল্লা উত্তর জেলা বিএনপির সাধারণ সম্পাদক আক্তারুজ্জামান সরকার, উপজেলা বিএনপির সভাপতি  একেএম ফজলুল হক মোল্লা, ভাইস চেয়ারম্যান মহাসীন সরকার, পৌর মেয়র এ্যাড. মো. নজরুল ইসলাম,  সাবেক উপজেলা চেয়ারম্যান মো.জহিরুল হক(জহর),সাবেক ভাইস চেয়ারম্যান  মো. ফজলুল হক মোল্লা ,উপজেলা বিএনপির সাধারণ সম্পাদক মহিউদ্দিন আহম্মেদ ও  ছাত্র বিষয়ক সম্পাদক অহিদুজ্জামান মোল্লা প্রমুখ ।

দৌলতপুরে একের পর এক বিচারবহির্ভূত হত্যাকাণ্ড মেতে উঠেছে আল্-সালেহ্ লাইফ লাইন। পর্ব-১

দৌলতপুরে একের পর এক  বিচারবহির্ভূত হত্যাকাণ্ড  মেতে উঠেছে আল্-সালেহ্ লাইফ লাইন। পর্ব-১

কুষ্টিয়া জেলা প্রতিনিধি //
কুষ্টিয়ার দৌলতপুর উপজেলার হুগোলবাড়িয়া ইউনিয়নে কল্যাণপুর বাজার থেকে চড়দিয়াড় গ্রামের যাওয়ার সড়কে বিশু ড্রাইভার এর বাড়ির সামনে গত মঙ্গলবার সকাল আনুমানিক ৯ টার সময় মোটরসাইকেল ও স্টিয়ারিং গাড়ি মুখোমুখি সংঘর্ষ হয়, ফলে ঔ স্থানেই নিহত হয় একজন।    নিহত মোটরসাইকেল চালক মরিচা ইউনিয়নের মাছদিয়াড় মুন্সি পাড়া গ্রামের মুনসাদ মুন্সির ছেলে তার নাম মামুন । স্টিয়ারিং গাড়ির হেলপার মসলেমপুর গ্রামের সাদ্দাকের ছেলে শাওন গুরুতর আহত হলে এলাকাবাসী তাকে উদ্ধার করে দৌলতপুর হসপিটালে ভর্তি করেন।
জানা যায়  চকদিয়ার থেকে দুজন ব্যক্তি মোটরসাইকেলে চলিয়ে আসছিলেন ইতিমধ্যে একটি ইট বোঝায় স্টারিং গাড়ি চালক নিজের গাড়ি নিয়ন্ত্রণ না করতে পেরে মোটরসাইকেল ও মোটরসাইকেল চালককে গাড়ির নিচে ফেলে পিষ্ট করে  পাশের  খাদে পড়ে যায়। এবং ঘটনাস্থলে মোটরসাইকেল চালক মামুন ওই অবৈধ গাড়ির চাকার নিচে পড়ে পিষ্ট হয়ে  মারা যান । স্টারিং গাড়ি চালক সাদিপুর গ্রামের শাকিল  ঘটনা বুঝতে পেরে সাথে সাথে পালিয়ে যায়।

এদিকে এলাকাবাসী ক্ষুব্ধ প্রতিক্রিয়া ব্যক্ত করে জানান, অবৈধ স্টিয়ারিং গাড়ির কারণে প্রতিনিয়ত দুর্ঘটনা ঘটে চলেছে, কারণ এ ধরনের গাড়ি-ঘোড়া যারা চালাচ্ছে তাদের  কোনো প্রকার কাগজপত্র বা কোন বৈধ লাইসেন্স বা অভিজ্ঞতা না থাকার কারণেই প্রতিনিয়ত ঘটছে এ ধরনের ঘটনা ।  এমন ঘটনার পরিপ্রেক্ষিতে সাংবাদিকরা ওই স্থানে যেয়ে  অনুসন্ধান করলে রেরিয়ে আসে আরো চাঞ্চল্যকর তথ্য  এলাকা বাসী জানায় এই অবৈধ গাড়ির মালিক  আল সালেহ লাইভ লাইন পাবলিক ওয়েলফেয়ারের ম্যানেজিং ডিরেক্টর  , হুমায়ুন কবির ও প্রজেক্ট ম্যানেজার মামুনুর রশিদ । যদিও  মালিকানার বিষয়টি গনমাধ্যমের কাছে অস্বীকার করে এড়িয়ে যাওয়ার চেষ্টা করে তারা  দুজন  ।  এলাকা ঘুরে আরো জানা যায়, হুমায়ুন ও মামুনের এ ধরনের ঘটনা নতুন কিছু নয়। এর আগেও তাদের মাধ্যমে ঘটেছে এমন বিচারবহির্ভূত হত্যাকাণ্ড,যেগুলো এলাকার বাসিন্দারা সবাই জানে। বেশ কিছু দিন আগে তাদের ইট ভাটার এলাকায় খেলতে খেলতে   একটি শিশু চলে আসলে শিশুটি আর জীবন নিয়ে ফিরে যেতে পারেনি।পরে শিশুটির লাশ উদ্ধার করা হয় ঔ ভাটার পুকুর থেকে। তারো আগে হুমায়ুন ও মামুনের অবৈধ গাড়িতে  দুর্ঘটনার শিকার হয়ে মারা গিয়েছে  একাধিক লোক যার কোনো বিচার হয়নি।স্থানীয় লোকজনের ধারণা  হুমায়ুন ও মামুন কালো ক্ষমতার পাশাপাশি অনেক কালো টাকার মালিক  হওয়ায় টাকার মাধ্যমে স্থানীয় প্রশাসনকে ম্যানেজ করে ধামাচাপা দিয়েছে সকল প্রকার হত্যাকান্ডের ঘটনা। আজ পর্যন্ত এসকল হত্যাকান্ডের বিরুদ্ধে হয়নি একটিও মামলা যেটা খুব দুঃখজনক। তবে এ বিষয়ে দৌলতপুর থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তার কথা বললে তিনি জানান তারা খুব শীঘ্রই ইনভেস্টিগেশন করে আইনগত ব্যবস্থা নেবে। তবে কিছুসংখ্যক এলাকাবাসী সাংবাদিকদের জানান যখন এ ধরনের কোনো দুর্ঘটনা ঘটে তখন টাকার বিনিময় এই দুই কর্মকর্তা নিরীহ কোন মানুষকে দিয়ে দোষ স্বীকার করে নেয় নিজেরা রক্ষা পাওয়ার জন্য এবারও হয়তোবা তার ব্যতিক্রম হবে না।

হেয়ালিপনায় ক্ষতি হতে পারে শত কোটি টাকা ব্যায়ে নির্মিত চাপাইল সেতুর

হেয়ালিপনায় ক্ষতি হতে পারে শত কোটি টাকা ব্যায়ে নির্মিত চাপাইল সেতুর

স্টাফ রিপোর্টারঃ নড়াইলের কালিয়া উপজেলার চাপাইল গ্রামে অবস্থিত সরকারের প্রায় শত কোটি টাকা ব্যায়ে মধুমুতি নদীর উপর নির্মীত চাপাইল সেতুটি প্রশাসনের নজরদরির অভাবে চরম ক্ষতির সম্ভাবনা দেখা দিয়েছে। নিয়ম নীতির তোয়াক্কা না করে বালু উত্তোলনের জন্য প্রশাসনের হেয়ালিপনাকে দায়ি করছে স্থানিয় সচেতন মহল। বার বার প্রশাসনকে অবগত করা হলেও কোন ভাবে ই থামছে না অবৈধ ভাবে রাতের আধারে বালু উত্তোলন। নড়াইল এবং গোপালগঞ্জের সংযোগ সেতুটি রক্ষা করতে প্রশাসনের নজরদারির দাবি জানিয়েছেন স্থানিয় সচেতন মহল।

মাননীয় প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা ভিডিও কনফারেন্স এর মাধ্যমে ২০১৬ সালের ৩০ এপ্রিল উদ্ভোদন করেন চাপাইল ব্রিজ নামে প্রায় শত কোটি টাকা ব্যায়ে নির্মিত এ সেতুটি।  স্থানিয় সরকার প্রকৌশল বিভাগ এলজিইডি এর তত্বাবধানে ৫৮৮ দশমিক ৬৫ মিটার দৈর্ঘ্য এবং ৯ দশমিক ৬ মিটার প্রস্থ এ সেতুটির আবস্থান কালিয়া উপজেলার চাপাইল এবং গোপালগঞ্জ সদর উপজেলার মানিকদাহ গ্রামে।  বালুমহাল ও মাটি ব্যাবস্থা আইন ২০১০ আনুযায়ী সেতু, কলভার্ট, সড়ক মহাসড়ক ও গুরুত্বপূর্ন স্থাপনার পাশে ড্রেজার মেশিন বা আন্য কোন যন্ত্র দিয়ে বালু উত্তলন করা জাবে না। অথচ কিছু আসাধু বালু ব্যাবসায়ী নিয়মের তোয়াক্কা না করে সেতুর মাত্র কয়েকশত গজ দুর থেকে ৩ থেকে ৫ টি ড্রেজার দিয়ে অবাধে উত্তোলন করছে বালূ। এছাড়া বৃহৎ আকৃতির বলগেটগুলি প্রতিদিনই ব্রিজের নিচের পিলারের সাথে পার্কিং করছে। এর ফলে বলগেটের ধাক্কায় ক্ষতি হচ্ছে সেতুটির। স্থানিয়ররা জানান, এভাবে প্রতিদিন সেতুর কাছ থেকে বালূ উত্তোলন করা হলে এবং সেতুর পিলারের সাথে বলগেট ও কাটিং ড্রেজার রাখলে শিগ্রই বড় ধরনের ক্ষতির সম্মুখীন হতে পারে সেতুটি। অতিদ্রত এর প্রতিকারের দাবি জানিয়েছেন তারা।এব্যাপরে গোপালগঞ্জ এলজিইডি এর নির্বাহী প্রকৌশলী এ কে এম ফজলুল হক এর সাথে যোগাযোগ করা হলে তিনি বলেন, “সেতুর কাছে খেকে বালু উত্তোলনের বিষয়টি আমরা আপনাদের মাধ্যমে জানতে পেরেছি। আমরা অফিসিয়াল ভাবে জেলা প্রশসনকে অবগত করব।” 

কালিয়া উপজেলা নির্বাহী অফিসার মোঃ নাজমুল হুদা বলেন, পূর্বে চাপাইল বালুমহালেন ইজারা থাকলেও সেতুর কারনে ঐ বালুমহালের সরকারি ইজারা বন্ধরয়েছে। তবে চরসিংগাতি বালুমহালের ইজারা দেওয়া হয়েছে। চরসিংগাতি বালুমহালেন ইজারাদার তার সীমানা অতিক্রম করে চাপাইল বালুমহাল থেকে বালু উত্তোলন করলে তার বিরুদ্ধে তিনি আইনগত ব্যাবস্থা গ্রহন করবেন বলে জানান। 

নড়াইল জেলা প্রশাসক আনজুমান আরা বলেন, “ সেতুর কাছ থেকে বালু উত্তলন করা হলে তার বিরুদ্ধে আইনগত ব্যাবস্থা গ্রহন করা হবে।”

রেড ক্রিসেন্ট চট্টগ্রামের ‘ফ্লু কর্ণার ও ইনভেস্টিগেশন সেল’পরিদর্শনে বিডিআরসিএস মহাসচিব

 রেড ক্রিসেন্ট চট্টগ্রামের ‘ফ্লু কর্ণার ও ইনভেস্টিগেশন সেল’পরিদর্শনে বিডিআরসিএস মহাসচিব

রিয়াজুল করিম রিজভী,চট্টগ্রাম ব্যুরো প্রধানঃনন কোভিড রোগীদের সেবা প্রদানের লক্ষ্য নিয়ে চলমান মাসব্যাপী ‘ফ্লু কর্ণার ও ইনভেস্টিগেশন সেল’ কার্যক্রমে চিকিৎসা সেবা ও বিনামূল্যে ঔষধ পৌঁছে দিয়ে জনসাধারণের কল্যাণে কাজ করছে রেড ক্রিসেন্ট চট্টগ্রাম গত ৩ মাস ব্যাপী এ সেবা কার্যক্রম পরিচালনা করে আসছে। তার ধারাবাহিকতায় ‘ফ্লু কর্ণার ও ইনভেস্টিগেশন সেল’ কার্যক্রম পরিদর্শন করেন বাংলাদেশ রেড ক্রিসেন্ট সোসাইটির মহাসচিব মোঃ ফিরোজ সালাহ্ উদ্দিন। বাংলাদেশ রেড ক্রিসেন্ট সোসাইটি চট্টগ্রাম জেলা ও সিটি ইউনিটের উদ্যোগে যুব রেড ক্রিসেন্ট চট্টগ্রামের বাস্তবায়নে মির্জাপুলস্থ ডাঃ শেখ শফিউল আজম এর বাসভবনে নিয়মিত রোগীকে মেডিসিন, গাইনী, বাতব্যাথা, শিশুসহ বিভিন্ন বিষয়ে অভিজ্ঞ চিকিৎসকদের মাধ্যমে ক্যাম্পে সেবা অব্যাহত রয়েছে। প্রতিনিয়ত রোগীদেও সেবা প্রদান করছে বাংলাদেশ রেড ক্রিসেন্ট সোসাইটির ম্যানেজিং বোর্ড সদস্য ও চট্টগ্রাম জেলা রেড ক্রিসেন্টের ভাইস চেয়ারম্যান ডাঃ শেখ শফিউল আজম, ডাঃ সাফকাত আজম শাকিব, ডাঃ শেখ সানজানা শারমিন।

এসময় আরো উপস্থিত ছিলেন রেড ক্রিসেন্ট সিটি ইউনিটের কার্যকরী পর্ষদ সদস্য আনোয়ার আজম, চট্টগ্রাম জেলা ইউনিটের ইউনিট লেভেল অফিসার আব্দুর রশিদ খান, সিটি ইউনিটের ইউনিট লেভেল অফিসার মুহাম্মদ ইয়াহইয়া বখতিয়ার, যুব রেড ক্রিসেন্ট, চট্টগ্রামের যুব প্রধান মোঃ ইসমাইল হক চৌধুরী ফয়সাল সহ যুব স্বেচ্ছাসেবকরা।

ঘোষিত হল দূর্বার তারুণ্য ক্রীড়া একাডেমি

 ঘোষিত হল দূর্বার তারুণ্য ক্রীড়া একাডেমি


কাজী মোঃ সাজ্জাদ হাসানঃ গতকাল ২৩ ই নভেম্বর রোজ সোমবার রাত প্রায় নয়টার দিকে হঠাৎ করে একটা লাইভ অনুষ্ঠানের মাধ্যমে দূর্বার তারুণ্য এর প্রতিষ্ঠাতা ও সভাপতি মুহাম্মদ আবু আবিদ দূর্বার তারুণ্য ক্রীড়া একাডেমি-এর আনুষ্ঠানিক যাত্রা ঘোষণা করেন। বিনা নোটিশে এমন ঘোষণায় অনেকে অবাক হলেও তরুণদের মাঝে রয়েছে এরকম ঘোষণা ব্যাপক সাড়া ফেলেছে।

দূর্বার তারুণ্য ক্রীড়া একাডেমি-এর আহ্বায়ক নির্বাচিত করা হয় কেন্দ্রীয় কমিটির সাধারণ সম্পাদক মুহাম্মদ আবু আদিল-কে।এগে যুগ্ম আহ্বায়ক হিসেবে নির্বাচিত করা হয় দুর্বার তারুণ্য কেন্দ্রীয় কমিটির পরিকল্পনা বিষয়ক সম্পাদক মোঃ কামরুল ইসলাম, যুব ও ক্রীড়া বিষয়ক সম্পাদক চিরঞ্জিত বড়ুয়া, এসএম হাসান মারুপ ও মেজবাহ চৌধুরী (সজীব) -কে।

এসময় মুহাম্মদ আবু আবিদ বলেন,  এই একাডেমি তে যাদের দায়িত্ব দেয়া হয়েছে, তাদের মধ্যে ২ জন দূর্বার তারুণ্য -এর লিখিত কোন কমিটি তে নেই। তারমানে এই একাডেমি সকলের জন্য উন্মুক্ত থাকবে। যে কেউ ই আমাদের সাথে যুক্ত হতে পারবে। এরকম আরও একাডেমি আসছে দূর্বার তারুণ্যের পক্ষ থেকে।

পটিয়ায় ২৫০০ পিস ইয়াবাসহ মাদক কারবারি আটক

পটিয়ায় ২৫০০ পিস ইয়াবাসহ মাদক কারবারি   আটক


সেলিম  চৌধুরী,  স্টাফ  রিপোর্টারঃ- পটিয়ায় চট্টগ্রাম  জেলা মাদকদ্রব্য  খ অঞ্চল কর্মকর্তা গত ২৩ নভেম্বর  গোপন সংবাদের ভিত্তিতে উপপরিচালক জনাব হুমায়ুন কবির খন্দকার এর সার্বিক তত্ত্বাবধানে এবং পরিদর্শক জনাব সাইফুল ইসলাম এর নেতৃত্বে  মাদকদ্রব্য নিয়ন্ত্রণ অধিদপ্তর, জেলা কার্যালয়, চট্টগ্রাম খ-সার্কেল(পটিয়া) এর একটি টিম ২,৫০০ (দুই হাজার পাঁচশত) পিস ইয়াবা সহ আসামী- মোঃ নূর (২২) আটক করেছে। সে  মৃত হাবিবুর রহমান, মাতা- দীল বাহার, সাং- হ্নীলা সিকদার পাড়া, হোল্ডিং-৩৫৫, পোস্টঃ হ্নীলা-৪৭৬১, ওয়ার্ড নং-০৫, হ্নীলা ইউনিয়ন পরিষদ, থানাঃ টেকনাফ, জেলা-কক্সবাজার কে চট্টগ্রাম - কক্সবাজার  মহাসড়কের পটিয়া থানাধীন মোজাফরাবাদ মেসার্স নজরুল এন্ড কোম্পানি ফিলিং স্টেশন এর সামনে চট্টগ্রাম অভিমুখী হানিফ বাসে থাকা আসামীর দেহ তল্লাশীপূর্বক ইয়াবা জব্দ করে। তার হাতে  সংরক্ষণ ও বহনের অপরাধে সন্ধ্যা আটক করে পটিয়া'য় মাদকদ্রব্য নিয়ন্ত্রণ আইন অনুযায়ী নিয়মিত মামলা দায়ের করা হয়েছে। তার ইতোপূর্বে আসামী মোঃ নুর একাধিক বার ইয়াবা একইভাবে পাচার করেছে বলে প্রাথমিকভাবে স্বীকার করে।

প্রধানমন্ত্রী গ্রামের মানুষের কথা সব সময় চিন্তা করেন : সমাজকল্যাণমন্ত্রী

প্রধানমন্ত্রী গ্রামের মানুষের কথা সব সময় চিন্তা করেন : সমাজকল্যাণমন্ত্রী

  

মোঃ রশিদুল ইসলাম রিপন, লালমনিরহাট জেলা প্রতিনিধিঃ আজ মঙ্গলবার (২৪ নভেম্বর) বিকেলে লালমনিরহাটের কালীগঞ্জ উপজেলার কাশিরামে নির্মিত মা ও শিশু হাসপাতাল পরিদর্শনকালে সমাজকল্যাণ মন্ত্রী নুরুজ্জামান আহমেদ বলেছেন, প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা গ্রামের মানুষের কথা সব সময় চিন্তা করে। গ্রামের মানুষেরা সব সময় অবহেলিত। তাই প্রধানমন্ত্রীর নির্দেশে গ্রামে গড়ে তোলা হচ্ছে অত্যাধুনিক মা ও শিশু হাসপাতাল। এতে করে মা ও শিশুরা অত্যাধুনিক স্বাস্থ্য সেবা পাবে। তাদের দেশের বাহিরে গিয়ে চিকিৎসা নিতে হবে না।

এ সময় বিশেষায়িত হাসপাতালটির কাজের অগ্রগতি ও গুণগত মান দেখে সন্তুষ্টি প্রকাশ করেন সমাজকল্যাণ মন্ত্রী তিনি আরও বলেন, প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা নারীদের কথাও ভাবেন। পাশাপাশি মা ও শিশুদের কথা চিন্তা করেন। এ সময় সমাজকল্যাণ মন্ত্রীর সাথে ছিলেন- লালমনিরহাট সমাজসেবা অধিদফতরের উপ-পরিচালক আব্দুল মতিন, জেলা গণপূর্ত অধিদফতরের উপ বিভাগীয় প্রকৌশলী হাসান মাহমুদ, কেএনএস উন্নয়ন সংস্থার চেয়ারম্যান সামছুজ্জামান আহমেদ ভুট্টু, কালীগঞ্জ থানার ওসি আরজু মো. সাজ্জাত, উপজেলা যুবলীগের সভাপতি রেফাজ রাঙ্গাসহ অন্যরা। 

 উল্লেখ্য, প্রায় ৪৫ কোটি টাকা ব্যয়ে অত্যাধুনিক সুবিধা সম্বলিত এ হাসপাতালটি সমাজকল্যাণ মন্ত্রণালয় ও স্থানীয় বেসরকারি সংস্থা কেএনএস উন্নয়ন সংস্থার যৌথ অর্থায়নে নির্মিত হচ্ছে এবং গণপূর্ত বিভাগ নির্মাণ কাজের তদারকি করছে। পরিকল্পনা মন্ত্রণালয়ের আর্থসামাজিক বিভাগের স্বাস্থ্য উইং এ বছরের শুরুর দিকে এই হাসপাতালটির নির্মাণের অনুমোদন দেয়। সেখানে বলা হয় হাসপাতালটি নির্মাণ ব্যয়ের ৮০ শতাংশ সমাজকল্যাণ মন্ত্রণালয় এবং স্থানীয় এনজিও কেএনএস উন্নয়ন সংস্থার অর্থয়ানে করবে। আগামী বছরের ডিসেম্বরে এটি উদ্বোধন করার কথা রয়েছে বলে জানিয়েছেন সংশ্লিষ্টরা

গফরগাঁওয়ে সপ্তম শ্রেণীর ছাত্রী কে ধর্ষন চেষ্টার অভিযোগ

গফরগাঁওয়ে সপ্তম শ্রেণীর ছাত্রী কে ধর্ষন চেষ্টার অভিযোগ


আশিকুজ্জামান মিজান ময়মনসিংহ প্রতিনিধি:ময়মনসিংহের গফরগাঁওয়ে চাচার বিরুদ্ধে সপ্তম শ্রেণিতে পড়ুয়া এক ছাত্রীকে ধর্ষণচেষ্টার অভিযোগ উঠেছে। অভিযুক্ত জাহাঙ্গীর আলম (৩০) ওই শিক্ষার্থীর বাবার চাচাতো ভাই এবং কান্দিগ্রাম সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ে দপ্তরী বলে জানা গেছে। ঘটনার পর থেকে জাহাঙ্গীর পলাতক।
এ ঘটনায় সোমবার দুপুরে স্কুলছাত্রীর বাবা উজ্জল মিয়া বাদী হয়ে উপজেলার পাগলা থানায় একটি লিখিত অভিযোগ দায়ের করেছেন।
অভিযুক্ত জাহাঙ্গীর আলমের বাড়ি উপজেলার পাগলা থানাধীন মশাখালী ইউনিয়নের কান্দি নামাপাড়া গ্রামে। ভুক্তভোগী ওই শিক্ষার্থী ও পাশাপাশিৱ বাসিন্দা।
স্কুলছাত্রীর ভাষ্য, সম্পর্কে তার চাচা জাহাঙ্গীর তাকে প্রায় প্রতিদিনেই রাস্তাঘাট এমনকি বাড়ির আশপাশেও আপত্তিকর কথা বলে উত্ত্যক্ত করত। ঘটনার দিন ৱাতে বসতঘরের নিকটস্থ টয়লেটে যায়।টয়লেট থেকে বের হওয়া মাত্রই লম্পট জাহাঙ্গীর ওই শিক্ষার্থীকে পেছন থেকে মুখ চেপে ধরে মাটিতে ফেলে জামা-কাপড় ছিঁড়ে ধর্ষণের চেষ্টা চালায়। পরে ওই শিক্ষার্থীর চিৎকারে বাড়ির লোকজন এগিয়ে এলে জাহাঙ্গীর পালিয়ে যায়।
 ঘটনাটি ঘটে ১৭ নভেম্বর মঙ্গলবাৱ ৱাতে। ঘটনার পর থেকে মেয়েটি লজ্জায় তার উপজেলার চরআলগী ইউনিয়নে তার নানার বাড়িতে অবস্থান করছে।
মেয়েটির বাবার ভাষ্য, স্থানীয় ৮নং ওয়ার্ডের ইউপি সদস্য (মেম্বার) ঘটনার পর থেকে বিচার করে দিবেন বলে আমাদের কে আইনানুগ ব্যবস্থা গ্রহণে বাধা দিয়েছে। এখন বলছেন জাহাঙ্গীরকে ধমক দিয়ে দিবেন। তাই বাধ্য হয়ে থানায় অভিযোগ করেছি।
ইউপি মেম্বার এমদাদুল বলেন, মেয়েটিকে বিয়ে দিতে হবে, তাই অভিযুক্ত জাহাঙ্গীরকে শাসিয়ে দুই পক্ষকে মিলিয়ে দিয়েছি।
কান্দিগ্রাম সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক (ভারপ্রাপ্ত) আরিফুন নাহার বলেন, ঘটনাটি শিক্ষা অফিস থেকে জানানো হয়েছে। অভিযুক্ত দপ্তরীকে শিক্ষা অফিসে পাঠানোর জন্য আমাকে নির্দেশ দেয়া হয়েছে।
এ ব্যাপারে পাগলা থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) শাহীনুজ্জামান খান বলেন, অভিযোগ পেয়েছি। ঘটনার সত্যতা পেলে অবশ্যই মামলা হবে।

আশাশুনির বড়দলে চেয়ারম্যান প্রার্থী সোহরাবের গণসংযোগ

আশাশুনির বড়দলে চেয়ারম্যান প্রার্থী সোহরাবের গণসংযোগ



আহসান উল্লাহ বাবলু আশাশুনি  সাতক্ষীরা  প্রতিনিধিঃ  আশাশুনির বড়দল ইউনিয়নে চেয়ারম্যান পদপ্রার্থী আওয়ামী লীগের মনোনয়ন প্রত্যাশী সাবেক ইউপি সদস্য ইউনিয়ন কৃষকলীগের সভাপতি সোহরাব হোসেন মোড়ল নির্বাচনী গণসংযোগ করেন। মঙ্গলবার সকাল থেকে ইউনিয়নের বিভিন্ন এলাকায় শতাধিক মোটরসাইকেল নিয়ে তিনি গণসংযোগ করেন। গণসংযোগকালে পথসভায় তিনি বলেন আমি দীর্ঘদিন ধরে বড়দল ইউনিয়নের অসহায় সাধারন মানুষের জন্য কাজ করে যাচ্ছি। সুবিধা বঞ্চিত অসহায় সাধারণ মানুষের কথা ভেবেই আমি প্রার্থী হয়েছি। আমি নির্বাচিত হতে পারলে এই ইউনিয়নে সরকারি খাস জমি প্রকৃত ভূমিহীনদের নিকট হস্তান্তর এবং খাস জলমহল সর্বসাধারণের জন্য অবমুক্ত করব। তিনি আরও বলেন নির্বাচিত হতে পারলে ইউনিয়ন পরিষদকে অনিয়ম ও দুর্নীতিমুক্ত করব এবং সন্ত্রাস,মাদক নির্মূল করব। তিনি বড়দল ইউনিয়নকে একটি আধুনিক ইউনিয়ন হিসেবে গড়ে তোলার অঙ্গীকার করেন। এ সময় উপস্থিত ছিলেন কৃষকলীগ নেতা রমেশ মন্ডল, আজিজুর রহমান, আনিস সরদার, ইউনিয়ন ছাত্রলীগের সভাপতি নাহিদ রানা বাবু,সাধারণ সম্পাদক আবু রায়হান সুমন,বাস্তুহারা লীগের সভাপতি রাজু আহমেদ,সাধারণ সম্পাদক মুজিবুর রহমান প্রমুখ।

ঝিনাইদহের সেই অটো চালক রাজকুমারের শেষ ইচ্ছা প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনাকে একবার স্বচোখে দেখা

ঝিনাইদহের সেই অটো চালক রাজকুমারের শেষ ইচ্ছা প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনাকে একবার স্বচোখে দেখা


 ঝিনাইদহ প্রতিনিধিঃঝিনাইদহের সেই অটো চালক রাজকুমারের শেষ ইচ্ছা মমতাময়ী মা প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনাকে একবার স্বচোখে দেখা। নাম তার রাজ কুমার বিশ্বাস। বয়স ৫৫ বছর। তিনি পেশায় একজন গ্রামবাংলা (অটো) চালক। তিলে তিলে করে কর্ষ্টাজিত কিছু টাকা জমিয়েছিলেন তিনি। স্বপ¥ ছিল তার ঝিনাইদহ শহরে এক টুকরো জমি কিনে বাড়ী করে পরিবার পরিজন নিয়ে বাকী জীবনটা কাটাবেন সেখানে। ঠিক সেই মূর্হুতে বিশ্বে যখন মহামারি করোনাভাইরাস ছড়িয়ে পড়ে। বাংলাদেশেও ঠিক একই অবস্থার সৃষ্টি হয়। তখন গ্রামবাংলার (অটো চালক) রাজ কুমারের মানষিক অবস্থা পাল্টে যায়। 

আবেগআপ্লুত হয়ে রাজকুমার বলেন, মমতাময়ী মা প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা নিজের কথা চিন্তা না করে দেশের মানুষকে নিয়ে যেভাবে ভাবেন এই দেখে সেই প্রতিক্রিয়া সৃষ্টি হয় তার মনে। তখন সে নিজের ভবিষ্যতের কথা চিন্তা না করে ভাবতে শুরু করেন দেশের মানুষের কথা। তাই তার শেষ ইচ্ছা এই মাকে এক বার স্বচোখে দেখা।

তাই করোনাকালীন সময়ে জেলা প্রশাসকের কার্ষালয়ে হাজির হয়ে তিল তিল করে জমানো সেই ৫০ হাজার টাকা করোনা ভাইরাস জনিত দুর্গতদের জন্য তুলে দিয়েছিলেন প্রায় ৬ মাস আগে জেলা প্রশাসক সরোজ কুমার নাথের কাছে। এরপর থেকে তিনি অটো চালিয়ে আবারও ৫০ হাজার টাকা জোগাড় করেছেন। তবে এবার তিনি তার কষ্টার্জিত জমানো টাকা দিতে চান সরাসরি প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার হাতে। এজন্য তিনি বিভিন্ন মহলে ধর্না দিচ্ছেন কিভাবে তিনি পৌছাবেন মমতাময়ী মা প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার কাছে।

রাজ কুমারের নিজ বাড়ী যশোরের পুলিশ লাইনস্ এলাকার টালিখোলা থেকে ১৯৯০ সালে জীবিকার উদ্যেশ্যে ঝিনাইদহে আসেন। তিনি ১৯৯৬ সাল থেকে বিভিন্ন জায়গায় ভাড়ায় চালিত আটো চালিয়ে জীবন জীবিকা নির্বাহ করছিলেন। সেই থেকে শহরের বিভিন্ন এলাকায় বাসা ভাড়া নিয়ে বসবাস করেন। বর্তমানে তিনি পৌর এলাকার চাকলাপাড়ায় একটি ভাড়া বাড়ীতে স্ত্রী ও একটি শিশু সন্তান নিয়ে বসবাস করছেন।

ঝিনাইদহ জেলা প্রশাসক সরোজ কুমার নাথ জানান, মহামারী করোনার সময় রাজ কুমারের মতো একজন সামান্য অটো চালক যে মানবিকতার পরিচয় দিয়েছেন তা সমাজের জন্য এক অনন্য দৃষ্টান্ত। জেলা প্রশাসনের পক্ষ থেকে তাকে ধন্যবাদ ও অভিনন্দন জানানো হয়েছিল।

মোংলায় কলেজ মোড়ে মোটরগাড়ীর গ্যারেজও ওয়ার্কশপে আগুন,ক্ষতির পরিমান ১০ লক্ষ টাকা

 মোংলায় কলেজ মোড়ে মোটরগাড়ীর গ্যারেজও ওয়ার্কশপে আগুন,ক্ষতির পরিমান ১০ লক্ষ টাকা


মোঃএরশাদ হোসেন রনি, মোংলাঃমোংলা পৌরসভার ৭নং ওয়ার্ডে এক ভয়াবহ অগ্নিকান্ডের ঘটনা ঘটছ,এতে ২টি ব্যাবসা প্রতিষ্ঠান পুড়ে ছাই। ক্ষতির পরিমান প্রায় ১০ লক্ষ টাকা। মঙ্গলবার বিকাল ৪টার সময় এ ভয়াবহ অগ্নিকান্ডের ঘটনা ঘটে।প্রাথমিক ভাবে ধারনা করা হচ্ছে শর্ট শার্কিট এর মাধ্যমে এ অগ্নিকাণ্ডের ঘটনা ঘটছে। 

স্হানীয় বাশিন্দা  ও প্রত্যক্ষ দর্শীরা জানায় মঙ্গলবার বিকাল ৪টায় হঠাৎ করেই তারা আগুনের শিখা দেখতে পায়। আগুন দেখার পর আমরা  ফায়ার সার্ভিসের কাছে ফোন করি। ফায়ার সার্ভিস আসার পর আগুন নিয়ন্ত্রণে আসে। অগ্নিকান্ডের সময় ব্যাবসা প্রতিষ্ঠান বন্ধ ছিলো বলে জানান এলাকাবাসী। অগ্নিকান্ডে ক্ষতিগ্রস্হ মোটরগাড়ি গ্যারেজ মালিক মহসিন এর বড় বোন বলেন আমাদের একমাত্র আয়েরউৎস এই গ্যারেজ। অগ্নিকাণ্ডের কারনে সব কিছু শেষ হয়ে গেছে।গ্যারেজে মানুষের অনেক মটরগাড়ী ছিলো সব পুড়ে শেষ।৭ লক্ষ টাকার ক্ষতি হয়েছে।আমরা গরিব মানুষ আমরা কিভাবে মানুষের ক্ষতি পূরন দেবো।এই বলে চিৎকার করে কাদতে থাকে। 

ক্ষতি গ্রস্ত আরেক জন আবুল বলেন আমি গরিব মানুষ ধার দেনা করে একটি ওয়াকশপ খুলেছি।আমার দোকানে ২ লক্ষ টাকার মালামাল ছিলো। আগুন লেগে সব শেষ।আমি এখন নিশ্ব হয়ে গেছি।

মোহনগঞ্জে সাইকেল নিয়ে দ্বন্দ্বে যুবক নিহত

মোহনগঞ্জে সাইকেল নিয়ে দ্বন্দ্বে যুবক নিহত



আজহারুল ইসলাম মোহনগঞ্জ প্রতিনিধি  নেত্রকোনাঃনেত্রকোনার মোহনগঞ্জে দোকানের সামনে বাইসাইকেল রাখাকে কেন্দ্র করে প্রতিপক্ষের অতর্কিত হামলায় কামরুল ইসলাম (২৫) নামে এক রিক্সা চালক নিহত হয়েছেন। এ ঘটনায় আহত হয়েছেন আরও চার জন । 

আহতরা হলেন, শাহীন মিয়া (১৬) হেলিম মিয়া (২৮) মনিরুল  (৩৫)  ও  ওয়াকিব (১৬)। নিহত কামরুল উপজেলার সিয়াধার গ্রামের মৃত. নিজাম উদ্দিনের ছেলে। আহতরা সবাই একই গ্রামের বাসিন্দা। এদের মধ্যে শাহীন মিয়ার অবস্থা আশঙ্কাজনক বলে জানা গেছে। তাকে ময়মনসিংহ থেকে ঢাকা মেডিকেলে পাঠানো হয়েছে। বাকিরা স্থানীয় হাসপাতালে চিকিৎসা নিয়েছেন।

মঙ্গলবার বেলা  ১১টার দিকে ময়মনসিংহ মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে চিকিৎসাধীন অবস্থায় কামরুলের মৃত্যু হয়। এর আগে রবিবার খুরশিমূল বাজারে বাইসাইকেল নিয়ে ঘটনার সূত্রপাত পায়। 

সিয়াধার গ্রামের প্রত্যক্ষদর্শী রহুল আমিন ও  মোশারফ হোসেন বলেন, এদিন শিয়াধার গ্রামের শাহজাহান মিয়ার ছেলে ওয়াকিব ও রামপাশা গ্রামের শফিকুল ইসলাম ছবি’র মধ্যে বাইসাইকেল নিয়ে দ্বন্দ্ব¦ হলে দুই পক্ষের লোকজনের মধ্যে সংঘর্ষ হয়। এ সময় বাজারে কয়েকটি দোকানেও হামলা চালানো হয়।এতে শাহীন মিয়া, হেলিম মিয়া ও ওয়াকিব আহত হয়। 

পরদিন সোমবার সকালে সিয়াধার গ্রামের কামরুল ইসলাম রিক্সা নিয়ে বের হলে তার ওপর অতর্কিত হামলা চালায় অপর পক্ষের রামপাশা গ্রামের শফিকুল ইসলাম ছবি’র নেতৃত্বে সাকি, সমেশ, রোপা, আহাদ, ফজর রহমানসহ ওই গ্রামের একদল লোক। এতে কামরুল ও মনিরুল আহত হয়। অবস্থা গুরুতর হওয়ায় কামরুলকে ময়মনসিংহ মেডিকেলে পাঠালে মঙ্গলবার তার মৃত্যু হয়। 

মোহনগঞ্জ থানার ওসি আব্দুল আহাদ খান জানান, এ ঘটনায় সোমবার রাতে সিয়াধার গ্রামের রুকন উদ্দিন বাদী হয়ে থানায় মামলা দায়ের করেছেন। ওই মামলাটিই এখন হত্যা মামলায় রূপান্তরিত হবে। ঘটনায় জড়িতদের প্রেপ্তার করার চেষ্টা চলছে। অতিরিক্ত পুলিশ সুপার (বারহাট্টা সার্কেল) সাইদুর রহমান ঘটনাস্থল পরিদর্শন করেছেন।

এমপি হিসেবে শপথ নিলেন মোহাম্মদ হাবিব হাসান

এমপি হিসেবে শপথ নিলেন মোহাম্মদ হাবিব হাসান

স্টাফ রিপোর্টারঃ  উপ-নির্বাচনে  মোহাম্মদ হাবিব হাসান ঢাকা-১৮ আসন থেকে নবনির্বাচিত সংসদ সদস্য হিসাবে  শপথ নিয়েছেন।

আজ মঙ্গলবার  (২৪ নভেম্বর) জাতীয় সংসদ ভবনের শপথ কক্ষে  স্পিকার ড. শিরীন শারমিন চৌধুরী  তাকে এ শপথ বাক্য পাঠ করান।শপথ গ্রহণ অনুষ্ঠান সঞ্চালনা করেন সংসদ সচিবালয়ের সিনিয়র সচিব ড. জাফর আহমেদ 

এ সময় উক্ত অনুষ্ঠানে উপস্থিত ছিলেন ডেপুটি স্পিকার মো. ফজলে রাব্বী মিয়া, চিফ হুইপ নূর-ই-আলম চৌধুরী, হুইপ ইকবালুর রহিম, হুইপ মাহাবুব আরা বেগম গিনি এবং নাদিরা ইয়াসমিন। রীতি অনুযায়ী শপথ গ্রহণ শেষে মোহাম্মদ হাবিব হাসান  শপথ বইয়ে স্বাক্ষর করেন।উল্লেখ্য গত ৯ জুলাই ঢাকা-১৮ আসনের সংসদ সদস্য সাহারা খাতুন মারা যান। পরে ১২ নভেম্বর এ আসনে উপ-নির্বাচন অনুষ্ঠিত হয়।

কয়রায় তুচ্ছ ঘটনাকে কেন্দ্র করে প্রতিপক্ষের হামলায় ৪ জন আহত

কয়রায় তুচ্ছ ঘটনাকে কেন্দ্র করে প্রতিপক্ষের হামলায় ৪ জন আহত


কয়রা(খুলনা)প্রতিনিধিঃ কয়রায় তুচ্ছ ঘটনাকে কেন্দ্র করে প্রতিপক্ষের হামলায় ৪ জন গুরুত্বর আহত হয়েছে। ঘটনাটি ঘটেছে গত রবিবার রাত অনুমানিক ৩ টার দিকে উপজেলার আমাদী ইউনিয়নের তালবাড়িয়া গ্রামে। ভুক্তভোগী পরিবারের সদস্য সঞ্জিত সরকার বলেন, গত রবিবার রাত আনুমানিক ৮ টার দিকে একই গ্রামের লাটো নামের এক ব্যাক্তি সঞ্জিতের বাড়ির পাশে মলত্যাগ করার জন্য অবস্থান করে। এতে বাধা সৃষ্টি করে তন্ময় মন্ডল। বাধা দেওয়ায় তাকে অসভ্য ভাষায় গালিগালাজ করে এমনকি মারপিঠ করার উদ্যক্ত হয়। বেগতিক দিকে তন্ময় ঘরের মধ্যে ফিরে আসে। ঐ ঘটনার জের ধরে বিশ্বজিত মন্ডলের নেতৃত্বে রাত ৩ টার দিকে তন্ময় পরিবারের উপর অতর্কিত হামলা চালায়। এতে সঞ্জিত মন্ডল বাধা সৃষ্টি করলেও তারা তা না মেনে ৬/৭ জন লোক মিলে ব্যাপক মারপিঠ করে। এতে কৃঞ্চারানী,  রনজিত সরদার, চয়ন সরদার  ও ইতিকা সরদার গুরত্বর আহত হয়। স্থানীয় এলাকবাসি আহতদের উদ্ধার করে উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ভর্তি করে। সেখানে তারা বর্তমান চিকিৎসাধীন রয়েছে। কয়রা থানার অফিসার ইনচার্জ মোঃ রবিউল হোসেন বলেন,বিষয়টি জানার পর ঘটনা স্থলে সাথে সাথে পুলিশ পাঠানো হয়। তবে এ ব্যাপারে কেউ কোন অভিযোগ দায়েন করেনি। অভিযোগ পেলে আইনগত ব্যবস্থা গ্রহন করা হবে।

মুনীরুজ্জামান নিমগ্ন সংবাদযোদ্ধা ছিলেন -মোমিন মেহেদী

মুনীরুজ্জামান নিমগ্ন সংবাদযোদ্ধা ছিলেন -মোমিন মেহেদী


প্রেস বিজ্ঞপ্তিঃদৈনিক সংবাদ-এর ভারপ্রাপ্ত সম্পাদক, বরেণ্য সাংবাদিক খন্দকার মুনীরুজ্জামান-এর মৃত্যুতে নতুনধারা বাংলাদেশ এনডিবির চেয়ারম্যান মোমিন মেহেদী গভীর শোক ও সন্তপ্ত পরিবারের প্রতি সমবেদনা জানিয়ে বলেছেন খন্দকার মুনীরুজ্জামান নিমগ্ন সংবাদযোদ্ধা ছিলেন। নতুন প্রজন্মের রাজনৈতিক-শিক্ষা-সাহিত্য-সাংস্কৃতিক-সাসমাজিক ও অর্থনৈতিক সম্ভাবনাকে তিনি সবসময় প্রেরণা জুগিয়েছেন। তাঁর এই চলে যাওয়া আমাদেরকে আরো একজন অভিভাবকের ¯েœহ বঞ্চিত করলো। নতুনধারার সিনিয়র ভাইস চেয়ারম্যান শান্তা ফারজানা, প্রেসিডিয়াম মেম্বার বীর মুক্তিযোদ্ধা ফজলুল হক ও মহাসচিব নিপুন মিস্ত্রী বিবৃতিতে আরো বলেন, নতুন প্রজন্মের প্রতিনিধিরা তাঁর প্রেরণার কথা শ্রদ্ধা ভরে আজীবন স্মরণ করবে। আগামী শুক্রবার ২৭ ডিসেম্বর তোপখানা রোডস্থ কার্যালয়ে বরেণ্য সংবাদযোদ্ধা খন্দকার মুনীরুজ্জামান-এর স্মরণে আলোচনা ও দোয়া অনুষ্ঠিত হবে বলেও জানান নতুনধারার নেতৃবৃন্দ।  


সিরাজগঞ্জে গরু চুরির ভয়ে রাত জেগে পাহারা দিচ্ছে

সিরাজগঞ্জে গরু চুরির ভয়ে রাত জেগে পাহারা দিচ্ছে


মাসুদ রানা সিরাজগঞ্জ জেলাপ্রতিনিধিঃসিরাজগঞ্জ সদর উপজেলার ছোনগাছা ইউনিয়নে গরু চুরির হিড়িক পরেছে। গরু চুরির উপদ্রুপ এলাকার সাধারণ কৃষক বিপাকে পড়েছেন। ঘটনাটি ঘটেছে ভাটপিয়ারী  এলাকায়।  এবিষয়ে চুরি হওয়া গরুর মালিকগন সদর থানায় অভিযোগ করলেও  পুলিশ প্রশাসন কোন ব্যবস্থা নিচ্ছে না বলে ভুক্তভোগীরা অভিযোগ করেছেন।অভিযোগে জানা যায়, গত (১৪ নভেম্বর) ভাটপিয়ারি এলাকার  মৃত আরস আলী সেখের ছেলে মোঃ শহিদুল ইসলাম (৫০) এর ৭৫-৮০ হাজার টাকা  মূল্যের  একটি ষাড় গরু গোয়াল থেকে চুরি করে  নিয়ে যমুনা নদীর দিকে রওয়ানা হয়। এসময় গরুর মালিক চুরির ঘটনাটি টের পেয়ে হৈ-চৈ শুরু করেন। এলাকাবাসির হৈ-হুল্লার সময় চোর তাড়াহুড়া করে গরু নিয়ে ইঞ্জিন চালিত নৌকা যোগে পালানোর সময় চোরের মোবাইল সেট রেখে পালিয়ে যায়। এলাকাবাসি মোবাইল সেটটি উদ্ধার করে থানায় জমা দিয়ে একটি অভিযোগ দায়ের করেছেন। স্থানীয়রা জানায়, গত মাসে একই এলাকার মোঃ আবুল কাসেম (৭০) ও আহাম্ম্দ আলীর ৩টি গরুসহ প্রায় ডজন খানেক গরু চুরি হয়ে যায়। চুরির বিষয়টি নিয়ে কোন প্রতিকার না হওয়ায় ভাটপিয়ারি গ্রামে আতংক বিরাজ করছে। এলাকাবাসি এখন চুরির ভয়ে রাত জেগে গরু পাহারা দিচ্ছে।এবিষয়ে ছোনগাছা ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের সভাপতি ও ইউপি চেয়ারম্যান মোঃ শহিদুল আলম  জানান, চোরের খপ্পরে পরে হতদরিদ্র কৃষকের  পালিত গরু যা ঐ পরিবারের আয়ের মূল উৎস তা  হারিয়ে কৃষকরা নিঃশ্ব হয়ে  পরছে।এ বিষয়ে সদর থানার এসআই মো. সাইফুল ইসলাম গাসাড়া উত্তর দিয়ে জানান, আমি ছুটিতে এসেছি। আসার সময় ওসি তদন্ত মো. মোস্তফার নিকট অভিযোগ পত্রটি জমা দিয়ে এসেছি।বিষয়টি সরজমিনে তদন্ত করে চুরির উপদ্রুপ থেকে রেহাই পেতে চায় এলাকাবাসি।

পটিয়া পৌর নির্বাচনে ৬ নং ওয়ার্ডে কাউন্সিলর পদে নির্বাচন করবেন জাহাঙ্গীর আলম চৌধুরী

 পটিয়া পৌর নির্বাচনে ৬ নং ওয়ার্ডে কাউন্সিলর পদে নির্বাচন করবেন জাহাঙ্গীর আলম চৌধুরী

 


সেলিম  চৌধুরী,  স্টাফ  রিপোর্টারঃ-আসন্ন পটিয়া পৌরসভা নির্বাচনে ৬ নং ওয়ার্ডের কাউন্সিলর পদে   মনোনয়ন প্রত্যাশী   বিশিষ্ট  ব্যাবসায়ি সমাজ সেবক  মোঃ জাহাঙ্গীর  আলম  চৌধুরী । তরুণ  উদীয়মান  যুবনেতা  নেতা  বিভিন্ন  সামাজিক আন্দোলন সংগ্রামে প্রত্যক্ষভাবে জড়িত। তার পরিচ্ছন্ন রাজনীতি, মানুষের প্রতি সহানুভূতি, বিপদে আপদে সামাজিক দায়িত্ব পালনের মাধ্যমে এলাকার নবীন-প্রবীণ সবার কাছে পরিচিত হয়ে  উঠেছেন। মোহাম্মদ  জাহাঙ্গীর  আলম চৌধুরী  পটিয়া পৌর সদরের ৬  ওয়ার্ডের নির্বাচন  করার বিষয়টি  এ প্রতিবেদকের কাছে  নিশ্চিত করেন। একান্ত সাক্ষাতকারে বলেন, কাউন্সিলর হিসেবে যদি তিনি নির্বাচিত হয়ে নবীন-প্রবীণদের সমন্বয়ে ৬ নং ওয়ার্ডকে একটি আদর্শ  মডেল ওয়ার্ড হিসেবে গড়ে তুলবেন। ৭নং  ওয়ার্ডকে তিনি সবার সহযোগিতায় উন্নয়ন  কাজ এগিয়ে  নেওয়ার আশাবাদী। এছাড়াও  তিনি  সকলের মতামতের এলাকার  উন্নয়নের ভুমিকা  রাখার আহবান  জানিয়ে বলেন,  ধনী, মধ্যবিত্ত, গরীব তিন ক্যাটাগরীতে ভাগ করে গরীব ও মধ্যবিত্তদের জীবনযাত্রার মান উন্নয়নে উপর্যোপরি পদক্ষেপ গ্রহণ করবেন। ৬ নং  ওয়ার্ডকে সকল অপরাধ  মুক্ত  করবেন বলে জানান । মোহাম্মদ  জাহাঙ্গীর  আলম চৌধুরী  বলেন উন্নয়নের ধারা অব্যহত রাখতে  তিনি  আগামী  পটিয়া  পৌরসভা নির্বাচনে  অংশ  গ্রহণ করবেন। এলাকার সবাই মিলেমিশে থাকবেন এবং তার সবচেয়ে বড় চ্যালেঞ্জ হচ্ছে সকল অপরাধ  কর্মকান্ড মুক্ত করে সাধারণ  জনগণের সেবা নিশ্চিত করতে তিনি প্রার্থী হবেন। মোহাম্মদ  জাহাঙ্গীর  আলম  চৌধুরী  একজন সফল ব্যাবসায়ি দীর্ঘদিন তিনি  ঐ এলাকার লোকজনের খোঁজ খবর রাখেন । তিনি বলেন, আল্লাহর রহমত হলে আমি নির্বাচন করে বিজয়ী হলে মানুষের সুখে  দুঃখে পাশে থাকার ঘোষণা দিয়ে সকলের সহযোগিতা ও দোয়া ও আশীর্বাদ কামনা  করেন।

মোংলায় কাঁকড়া চাষীদের কর্মশালা অনুষ্ঠিত

মোংলায় কাঁকড়া চাষীদের কর্মশালা অনুষ্ঠিত

মোঃএরশাদ হোসেন রনি, মোংলাঃ মোংলায় ‘কাঁকড়া চাষ প্রযুক্তি সম্প্রসারণ ও বাজারজাতকরণের মাধ্যমে উদ্যোক্তাদের আয়বৃদ্ধি এবং কর্মসংস্থান সৃষ্টি শীর্ষক কর্মশালা অনুষ্ঠিত হয়েছে।মঙ্গলবার সকালে উপজেলা অফিসার্স ক্লাবে অনুষ্ঠিত এ কর্মশালায় স্থানীয় কাঁকড়া চাষী, ডিপো মালিক ও ফড়িয়ারা অংশ নেন। 

বেসরকারী উন্নয়ন সংস্থা নবলোকের আয়োজনে ও পল্লী কর্ম-সহায়ক ফাউন্ডেশনের অথার্য়নে কাঁকড়া চাষীদের নিয়ে এ কর্মশালা অনুষ্ঠিত হয়। কর্মশালায় অন্যান্যের মধ্যে উপস্থিত ছিলেন উপজেলা সিনিয়র মৎস্য কর্মকর্তা  মো: জাহিদুল ইসলাম, সহকারী মৎস্য কর্মকর্তা  এ জেড এম তৌহিদুর রহমান, নবলোকের প্রকল্প সমন্বয়কারী মোস্তাফিজুর রহমান ও ভ্যালু চেইন ফ্যাসিলিটেটর জাকির হোসাইন।

কর্মশালার অতিথি ও এনজিও কর্মকতার্রা কিভাবে আবহাওয়ার সাথে খাপ খায়িয়ে কাঁকড়া চাষাবাদ, বাজারজাতকরণ, আয় বৃদ্ধি ও কর্মসংস্থানের সৃষ্টি করা যায় এবং নতুন নতুন উদ্যোক্তা বাড়ানো যায় সেই সব বিষয় নিয়ে চাষী ও ব্যবসায়ীদের পরামর্শ দেয়ার পাশাপাশি নানাবিধ সমস্যা নিয়ে উম্মুক্ত আলোচনা করেন।   

উল্লেখ্য, মোংলা ও রামপালের প্রায় ১ হাজার কাঁকড়া চাষীকে কাঁকড়া চাষ ও বাজারজাতকরণ সহ সকল কার্যক্রমে নানা ধরণের সহায়তা করে আসছে নবলোক। 

সাতক্ষীরা জেলা প্রশাসনের উদ্যোগে মাস্ক বিহীন ঘুরাঘুরির দায়ে জরিমানা

 সাতক্ষীরা জেলা প্রশাসনের উদ্যোগে মাস্ক বিহীন ঘুরাঘুরির দায়ে  জরিমানা


আজহারুল ইসলাম সাদী, স্টাফ রিপোর্টারঃসাতক্ষীরা জেলা  জেলা প্রশাসক ও বিজ্ঞ জেলা ম্যাজিস্ট্রেট এস এম মোস্তফা কামাল এঁর নির্দেশে, মঙ্গলবার (২৪নভেম্বর) সকাল থেকে দুপুর পর্যন্ত মাস্ক পরিধান নিশ্চিত করতে, সাতক্ষীরা শহরের বিভিন্ন স্থানে মোবাইল কোর্ট পরিচালিত হয়। এসময় মাস্কবিহীন ঘোরাঘুরি করা, ব্যাবসা কার্যক্রম পরিচালনা করা সহ মাস্কবিহীন থাকায় ১০ জনকে ৩০০০ টাকা জরিমানা করা হয়। 

যাদের কাছে  মাস্ক নেই তাদের মাঝে মাস্ক বিতরণ করা হয়। আসন্ন শীতে কোভিড-১৯ এর (Second wave -এ)  তীব্র সংক্রমণ হতে পারে। এই লক্ষ্যে সবাইকে সচেতন থেকে স্বাস্থ্যবিধি অনুসরণ ও সরকারি নির্দেশনা অনুযায়ী বাধ্যতামূলক ভাবে মাস্ক পরিধান করতে সাতক্ষীরা জেলা প্রশাসনের পক্ষ অনুরোধ করা হয়েছে।জনস্বার্থে অভিযান পরিচালনা অব্যাহত থাকবে।

জীবননগরে কীটনাশকমুক্ত সাপ্তাহিক বাজারের শুভ উদ্বোধন

 জীবননগরে কীটনাশকমুক্ত সাপ্তাহিক বাজারের শুভ উদ্বোধন





নিউজ ডেস্কঃচুয়াডাঙ্গার জীবননগরে সাপ্তাহিক সবজি বাজারের উদ্বোধন করা হয়েছে। সোমবার বেলা ১২ টার সময় জীবননগর উপজেলার উথলী ইউনিয়ন কৃষি মোর্চার আয়োজনে ও ওয়েভ ফাউন্ডেশনের তত্বাবধানে সমৃদ্ধি প্রকল্পের আওতায় ৫০ টি বাড়ি থেকে উৎপাদিত কীটনাশকমুক্ত সবজি বিক্রি করার জন্য সাপ্তাহিক সবজি বাজারের উদ্বোধন করা হয়। উপজেলার উথলী বাসস্ট্যান্ড মোড়ে আনুষ্ঠানিকভাবে এই কীটনাশকমুক্ত সাপ্তাহিক সবজি বাজারের উদ্বোধন করেন জীবননগর উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা এসএম মুনিম লিংকন। 


উথলী ইউনিয়ন কৃষি মোর্চার সভাপতি আব্দুল হান্নানের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠানে বিশেষ অতিথি হিসেবে বক্তব্য রাখেন- উথলী ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান আবুল কালাম আজাদ, জেলা লোকমোর্চার সাধারণ সম্পাদক শাহ্ আলম সনি, উথলী ইউনিয়ন লোকমোর্চার সভাপতি আব্দুল মান্নান পিল্টু, জীবননগর উপজেলা লোকমোর্চার সহ-সভাপতি, সাংবাদিক সালাউদ্দীন কাজল, ইউনিয়ন কৃষি মোর্চার সাধারণ সম্পাদক সেলিম হোসেন, ওয়েভ ফাউন্ডেশনের প্রকল্প সমন্বয়কারী কামরুজ্জামান যুদ্ধ প্রমূখ।অনুষ্ঠানে ওয়েভ ফাউন্ডেশনের কর্মকর্তা, যুব কমিটির সদস্যবৃন্দ, এলাকার সবজি চাষি ও স্থানীয় সুধীমন্ডলী উপস্থিত ছিলেন।

কীটনাশকমুক্ত সাপ্তাহিক বাজারে বেগুন, পুইশাক, শিম, লাউ, কচু, পেঁপে, ফুলকপি, বাঁধাকপি, কলমি শাক, পালনশাকসহ নানা ধরনের  শাক-সবজি বিক্রি করা হবে।উল্লেখ্য, ওয়েভ ফাউনন্ডেশন জীবননগর উপজেলার উথলী ইউনিয়নে সমৃদ্ধি প্রকল্পের আওতায় ৫০টি বাড়ির আঙ্গিনায় ৫ মাস আগে থেকে কীটনাশকমুক্ত সবজি আবাদ করা হয়। উৎপাদিত কীটনাশকমুক্ত এসব সবজি প্রতি সোমবার উথলী বাসস্ট্যান্ডে কীটনাশকমুক্ত সবজি বাজারে বিক্রি করা হবে।

দুস্থ ও নিম্নবিত্ত মানুষের মাঝে রেড ক্রিসেন্ট চট্টগ্রামের উপহার সামগ্রী বিতরণ

 দুস্থ ও নিম্নবিত্ত মানুষের মাঝে রেড ক্রিসেন্ট চট্টগ্রামের উপহার সামগ্রী বিতরণ

রিয়াজুল করিম রিজভী,চট্টগ্রাম ব্যুরো প্রধানঃবাংলাদেশ রেড ক্রিসেন্ট সোসাইটি চট্টগ্রাম সিটি ইউনিটের উদ্যোগে যুব রেড ক্রিসেন্ট, চট্টগ্রামের সহযোগিতায় জাতীয় সদর দপ্তর হতে প্রেরিত ফুড প্যাকেজ নগরীর কর্ণেলহাট সংলগ্ন কাট্টলী নুরুল হক চৌধুরী উচ্চ বিদ্যালয় মাঠে অদ্য ২৩ নভেম্বর নিম্নবিত্ত পরিবারের মাঝে উপহার সামগ্রী প্রদান করা হয়। উক্ত ত্রাণ সহায়তা বিতরণ কার্যক্রমে প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন চট্টগ্রাম সিটি কর্পোরেশনের প্রশাসক খোরশেদ আলম সুজন। ত্রাণ বিতরণে বিশেষ অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন বাংলাদেশ রেড ক্রিসেন্ট সোসাইটির ম্যানেজিং বোর্ড সদস্য ও জেলা রেড ক্রিসেন্ট এর ভাইস চেয়ারম্যান ডাঃ শেখ শফিউল আজম, অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন সিটি রেড ক্রিসেন্টের সেক্রেটারী আব্দুল জব্বার। যুব রেড ক্রিসেন্ট, চট্টগ্রামের যুব প্রধান মোঃ ইসমাইল হক চৌধুরী ফয়সাল চৌধুরী ফয়সাল এর সঞ্চালনায় আরো উপস্থিত ছিলেন চট্টগ্রাম সিটি রেড ক্রিসেন্টের কার্যকরী পর্ষদ সদস্য আনোয়ার আজম, সিটি ইউনিটের ইউনিট লেভেল অফিসার মুহাম্মদ ইয়াহইয়া বখতিয়ার,বিশিষ্ট মুক্তিযুদ্ধা আমাউদ্দীন চৌধুরী, সমাজসেবক আফসার আলম বাবলু, আবদুস সালাম, যুব রেড ক্রিসেন্ট, চট্টগ্রামের ক্রীড়া ও প্রচার প্রকাশনা বিভাগীয় প্রধান কৃষ্ণ দাশসহ কার্যকরী পর্ষদের সদস্যবৃন্দ ও যুব স্বেচ্ছাসেবকরা।


নিম্নবিত্ত পরিবারের সমূহের মাঝে চাউল, ডাল, চিনি, সুজি, লবণ, তৈল, হাইজিন কিটস, টুথপেস্ট উপকরণ সমূহ বিতরণ করা হয়  বিতরণ করা হয়।

স্নাতকোত্তর ও স্নাতক শেষবর্ষের পরীক্ষা নেওয়ার দাবী জবি শিক্ষার্থীদের

 স্নাতকোত্তর ও স্নাতক শেষবর্ষের পরীক্ষা নেওয়ার দাবী জবি শিক্ষার্থীদের

জবি প্রতিনিধি:করোনার কবলে পড়ে বন্ধ রয়েছে শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান তবে চলছে অনাইনে ক্লাস। অনলাইনে ক্লাস হলেও আবার পরীক্ষা হচ্ছে না। এতে ভোগান্তি পোহাচ্ছেন স্নাতক ও স্নাতকোত্তর শেষ পর্বের শিক্ষার্থীরা। বিশেষ করে জগন্নাথ বিশ্ববিদ্যালয়ের ১০ ও ১১ ব্যাচের শিক্ষার্থীরা এই ভোগান্তি পোহাচ্ছে। অনেকে এই পরীক্ষার বাকী থাকার কারণে পার্মানেন্ট কোন জবেও ঢাকতে পারছেন না। আবার স্নাতক পরীক্ষা না সম্পন্ন হওয়ার কারনে বিভিন্ন পরীক্ষায় আবেদনও করতে পারছেন না। আবেদন করতে না পাওয়া অনেক শিক্ষার্থী সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে হতাশা প্রকাশ করেন। তারা জানান, পরীক্ষা নিলে আমরা বিভিন্ন চাকুরীর পরীক্ষা আবেদন করে পরীক্ষা দিতে পারবো। পরীক্ষা না নেওয়ায় আমরা কোন চাকুরীর পরীক্ষায় আবেদন করতে পারছিনা। জানা যায় , বিশ্ববিদ্যালয়ের বিভিন্ন বিভাগের ১০ ও ১১ ব্যাচের শিক্ষার্থীদের যথাক্রমে স্নাতকোত্তর ও স্নাতকের শেষ সেমিষ্টারের পরীক্ষার জন্য অপেক্ষা করছেন। কিন্তু ক্যাম্পাস না খোলা থাকার কারণে পরীক্ষা নিতে পারছেন না বিভাগগুলো। বিশ্ববিদ্যালয়ের পরিসংখ্যান , গনিত, নৃবিজ্ঞান, আইন ও ভূগোলসহ আরো বিভিন্ন বিভাগের ১১ ব্যাচের শিক্ষার্থীরা স্নাতক শেষ সেমিষ্টারের পরীক্ষা না হওয়ায় তারা কোন চাকুরীর পরীক্ষায় অংশগ্রহন করতে পারছেন না। এতে করে তারা পরীক্ষা দেওয়া থেকে বঞ্চিত এবং পিছিয়ে পড়ছেন বলে অভিযোগ করেন। এছাড়াও ১০ ব্যাচের স্নাতকোত্তরের শেষ সেমিষ্টারের পরীক্ষার জন্য অপেক্ষা করা শিক্ষার্থীরাও পরেছেন বিপাকে। কবে হবে তাদের স্নাতকোত্তর! এ নিয়ে তারাও বেশ উদ্বিগ্ন। তারা চাচ্ছে তাদের পরীক্ষা এবছরেই নেওয়া হোক। কবে বিশ্ববিদ্যালয় খুলবে এই অনিশ্চয়তায় তারা পরে থাকতে চায় না। তারাও পরীক্ষার জোড়ালো দাবি করছেন।


ইংরেজি বিভাগের ১১ ব্যাচের শিক্ষার্থী সুপ্ত বলেন, আমরা পরীক্ষা নেওয়ার দাবি জানাচ্ছি। পরীক্ষা নিলে আমাদের সবার উপকার হয়। পরীক্ষা না নিলে আমরা সেশন জোটে পড়ার সম্ভাবনা আছে। তিনি আরো বলেন, এমনিতে অনেকদিন ধরে ক্যাম্পাস বন্ধ থাকায় লেখাপড়া করা হয়নি। পরীক্ষার মধ্য দিয়ে আবার লেখাপড়া করতে চাই।

ভূগোল ও পরিবেশ বিভাগের ১০ ব্যাচের এক শিক্ষার্থী জানান, আমাদের মাস্টার্স পরীক্ষা শেষ হওয়ার কথা ছিল এপ্রিলে কিন্তু আমাদের এখনও পরীক্ষা নেওয়ার কোন সম্ভাবনা দেখছিনা। বিভাগের শিক্ষকরা চাইলেই পরীক্ষা নিতে পারে। তিনি আরো বলেন, আমাদের মাস্টার্স  পরীক্ষা দ্রুত নেওয়া হোক।

এই বিষয়টি নিয়ে ভূগোল ও পরিবেশ বিভাগের চেয়ারম্যান মোহাম্মদ আবদুল কাদেরের সাথে যোগাযোগ করলে তিনি জানান, করোনার মধ্যে যাদের ক্লাস শেষ হয়েছে তাদের পরীক্ষা নেয়ার ব্যাপারে বিশ্ববিদ্যালয় কর্তৃপক্ষকে জানানো হয়েছে তবে তাদের থেকে কোনো সিদ্ধান্ত জানানো হয় নি। আর করোনার মধ্যে ক্লাস শেষ হয়েছে বলা যাবে না কেননা মিড টার্ম ও আনুষাঙ্গিক বিভিন্ন বিষয়ে ক্লাস নেয়ার পর তাদের পরীক্ষা নিতে হবে। রাষ্ট্রীয় সিদ্ধান্ত অনুযায়ী বিশ্ববিদ্যালয় গুলো স্বাভাবিক পরিবেশে ফিরে এলে পরীক্ষার চিন্তাভাবনা করা হবে।

পরীক্ষা কন্ট্রোলার এ. কে. এম. আক্তারুজ্জামান জানান, একাডেমিক কাউন্সিলে কোনো সিদ্ধান্ত হয় নি। কিছু কিছু পরীক্ষা যেমন রিটেক, সাপ্লি (১০-১২ জন) এসব পরীক্ষা সামাজিক দূরত্ব বজায় রেখে নেয়া হয়েছে। কিন্তু অনলাইন ক্লাসের পর রিফ্রেশমেন্ট ক্লাস না নিয়ে, প্র‍্যাক্টিকেল ক্লাস, ল্যাব না নিয়ে সরাসরি পরীক্ষা নেয়া সম্ভব নয়। সরকারের সিদ্ধান্ত অনুযায়ী পরীক্ষা নেয়া হবে।

এ বিষয়ে উপাচার্য অধ্যাপক ড. মীজানুর রহমান বলেন, কোনো বিভাগের পরীক্ষা যদি করোনার আগে শুরু হয়ে থাকে সেটা শেষ করা যায়নি সেটা বিভাগীয় চেয়ারম্যান সবার যোগাযোগ করে পরীক্ষা নিচ্ছে। আবার কোনো বিভাগে (নাট্যকলা, ম্যাথ গ্রুপ) ২০-২৫ শিক্ষার্থী থাকে তারা একটা ব্যবস্থা নিতে পারে। কিন্তু যেখানে ছাত্র সংখ্যা ৮০-১২০ জন সেখানে কি করা হবে সে ব্যাপারে কোনো আলোচনা বা সিদ্ধান্ত কিছুই হয়নি। সরকারের অনুমতি ব্যতীত কিছু করা সম্ভব নয়।

সেমিস্টার ফি জমা দিতে সিউরক্যাশ এজেন্ট ভোগান্তিতে জবি শিক্ষার্থীরা

 সেমিস্টার ফি জমা দিতে সিউরক্যাশ এজেন্ট ভোগান্তিতে জবি শিক্ষার্থীরা


জবি প্রতিনিধি:করোনা সংকট উপেক্ষা করে জগন্নাথ বিশ্ববিদ্যালয়ের (জবি) বিভিন্ন বিভাগে ১ম বর্ষের ২য় সেমিস্টার থেকে শুরু করে অন্যান্য বর্ষে পরবর্তী সেমিস্টারে ভর্তির নোটিশ দেওয়া হয়েছে, কিন্তু ভর্তি ফি জমা দেয়ার একমাত্র মাধ্যম সিউর ক্যাশ এজেন্ট খুঁজে পাচ্ছে না ঢাকার বাহিরে নিজ নিজ বাসস্থানে অবস্থানরত  অধিকাংশ শিক্ষার্থীরা। ফলে ভর্তি ফি পেমেন্ট করতে পোহাতে হচ্ছে বিড়ম্বনা।

সমাজবিজ্ঞান বিভাগের তৃতীয় বর্ষের একজন শিক্ষার্থী বলেন, আমার বাসা কিশোরগঞ্জের করিমগঞ্জে এখানে বিকাশ, রকেট ছাড়া অন্য কোনো সেবা পাচ্ছি না। তাই আমার একজন সহপাঠীর মাধ্যমে টাকা পেমেন্ট করার জন্য তার কাছে বিকাশে টাকা পাঠিয়েছি। আমার মতো অনেকেই এ সমস্যায় পড়েছে, আমার মনে হয় বিশ্ববিদ্যালয়ে ভর্তি ফি জমা অন্য কোনো জনপ্রিয় ব্যাংকিং খাতে চুক্তি হলে ভালো হবে।

বিশ্ববিদ্যালয়ের পনেরোতম আবর্তনের এক শিক্ষার্থী জানায় আমার এলাকায় সিউরক্যাশ এজেন্ট নেই। তাই নিজে একটি একাউন্ট খুলে এক বন্ধুর সাথে যোগাযোগ করে টাকা আনতে হয়েছে। এক্ষেত্রে আামাদের খরচ বেশি হচ্ছে তাকে আমার বিকাশে টাকা টা পেমেন্ট করতে হয়েছে সেক্ষেত্রে তাকে ক্যাশ আউট চার্জ দিতে হয়েছে।

এছাড়াও অনেক সময় একসাথে একমাত্র মাধ্যম সিউরক্যাশে পেমেন্ট দিতে গিয়ে নানা  জটিলতায় পরে শিক্ষার্থীরা। এতে পরে তাদের চরম ভোগান্তি পোহাতে হচ্ছে। শিক্ষার্থীদের দাবি রূপালী ব্যাংক এর মোবাইল ব্যাংকিং কার্যক্রম শিউরক্যাশের এজেন্ট সর্বস্তরে না থাকায় তাদের ব্যাপক সমস্যার সৃষ্টি হচ্ছে। এর স্থায়ী সমাধান চান শিক্ষার্থীরা।এ বিষয়ে বিশ্ববিদ্যালয়ের রেজিস্ট্রার প্রকৌশলী মো: ওহিদুজ্জামান বলেন, যদি কোথাও এজেন্ট খুঁজে না পাওয়া যায় আামাদের বা বিভাগীয় চেয়ারম্যান কে অভিহিত করলে আমরা অবশ্যই বিকল্প ব্যবস্থা নিবো।

উল্লেখ্য, ৭ অক্টোবর  এক বিজ্ঞপ্তিতে করােনাভাইরাস পরিস্থিতি বিবেচনায় চলতি বছরের মার্চ থেকে ডিসেম্বর পর্যন্ত স্নাতক এবং স্নাতকোত্তর শ্রেণীর শিক্ষার্থীদের সকল প্রকার বিলম্ব ফি মওকুফ করে বিশ্ববিদ্যালয় কর্তৃপক্ষ।

ধর্ম প্রতিমন্ত্রী হিসেবে শপথ নিচ্ছেন ফরিদুল হক খান দুলাল এমপি

 ধর্ম প্রতিমন্ত্রী হিসেবে শপথ নিচ্ছেন ফরিদুল হক খান দুলাল এমপি

আব্দুর রাজ্জাকঃ আজ মঙ্গলবার সন্ধ্যায় বঙ্গভবনে জামালপুর-২ আসনের  (ইসলামপুর) সংসদ সদস্য মো. ফরিদুল হক খান দুলাল এমপি ধর্ম প্রতিমন্ত্রী হিসেবে শপথ নিতে যাচ্ছে  মন্ত্রিসভায়, তার অন্তর্ভুক্ত করার বিষয়টি নির্ভরযোগ্য সূত্র নিশ্চিত করেছে। সবকিছু ঠিক থাকলে মঙ্গলবার (২৪ নভেম্বর) সন্ধ্যায় বঙ্গভবনে প্রেসিডেন্টের নিকট শপথ নেবেন তিনি।

অপরদিকে বঙ্গভবন সূত্র জানিয়েছে, মঙ্গলবার সন্ধ্যায় মন্ত্রিসভার সদস্য হিসেবে একজনের শপথগ্রহণের প্রস্তুতি চলছে। এ বিষয়ে জামালপুরের ইসলামপুর উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা (ইউএনও) এস এম মাজহারুল ইসলাম গণমাধ্যমকে বলেন, ‘আমার এই উপজেলা থেকে নির্বাচিত সংসদ সদস্য ফরিদুল হক খান স্যার মঙ্গলবার সন্ধ্যা ৬টায় শপথ নিচ্ছেন। আমরা বিকেল ৫টা নাগাদ এই সুসংবাদটি জেনেছি। সংবাদটি পাওয়ার পর স্যারকে অভিনন্দনও জানিয়েছি।’ উল্লেখ্য, গত ১৩ জুন ধর্ম প্রতিমন্ত্রী শেখ মোহাম্মদ আব্দুল্লাহর ইন্তেকালের পর থেকে ধর্ম মন্ত্রণালয় মন্ত্রি পদ শূন্য রয়েছে।

ফরিদুল হক খান দুলাল বাংলাদেশ আওয়ামী লীগের মনোনয়নে জামালপুর-২ আসন (ইসলামপুর) থেকে নবম, দশম ও একাদশ জাতীয় সংসদে নির্বাচিত সদস্য। তিনি দশম জাতীয় সংসদে স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয় সম্পর্কিত সংসদীয় স্থায়ী কমিটির সদস্য ছিলেন।

 তিনি ইসলামপুর উপজেলা আওয়ামী লীগের সভাপতির দায়িত্ব পালন করছেন।ফরিদুল হক খান ১৯৫৬ সালের ২ জানুয়ারি তৎকালীন পূর্ব পাকিস্তানের জামালপুর জেলার ইসলামপুর উপজেলার উত্তর সিরাজাবাদ গ্রামে এক সম্ভ্রান্ত মুসলিম পরিবারে জন্মগ্রহণ করেন।

 জানা গেছে, তিনি একজন মেধাবী ও উচ্চ শিক্ষত এবং ছাত্র জীবন থেকে বঙ্গবন্ধুর আদর্শ রাজনৈতিক করে আসছেন।

মাননীয় প্রধানমন্ত্রী জননেত্রী শেখ হাসিনার আস্থাভাজন  মুজিব আদর্শ সৈনিক

আকিজ গ্রুপের অর্থায়নে সাতক্ষীরায় ‘পাকা ঘর’ নির্মাণ কাজের উদ্বোধন

আকিজ গ্রুপের অর্থায়নে সাতক্ষীরায় ‘পাকা ঘর’ নির্মাণ কাজের উদ্বোধন

আজহারুল ইসলাম সাদী, স্টাফ রিপোর্টারঃআকিজ গ্রুপের অর্থায়নে সাতক্ষীরায় ‘পাকা ঘর’ নির্মাণ কাজ উদ্বোধন করেছেন, সাতক্ষীরা জেলা পরিষদের প্যানেল চেয়ারম্যান সৈয়দ আমিনুর রহমান বাবু।

সাতক্ষীরা পৌরসভার অন্তর্গত ইটাগাছায় নুরুজ্জামান ময়নার বসতঘর নির্মাণ কাজ, সোমবার (২৩নভেম্বর) দুপুরে আকিজ ট্রাস্টের সহযোগিতায় ও সাতক্ষীরা জেলা পরিষদের প্যানেল চেয়ারম্যান সৈয়দ আমিনুর রহমান বাবুর তত্ত্বাবধানে দুর্যোগ সহনীয় ঘর নির্মাণ কাজের উদ্বোধন করা হয়। 

এসময় উপস্থিত ছিলেন আকিজ গ্রুপের চেয়ারম্যান শেখ নাসির উদ্দিন (সিআইপি) এর পক্ষে প্রধান প্রশাসনিক কর্মকর্তা মোহাম্মাদ আলী সাহাব, স্বেচ্ছাসেবী সামাজিক সংস্থা আমাদের সাতক্ষীরার নির্বাহী পরিচালক আব্দুর রহমান, ইব্রাহিম খলিল প্রমুখ।

পটিয়া পৌর নির্বাচনে ৬ নং ওয়ার্ডে কাউন্সিলর পদে নির্বাচন করবেন জাহাঙ্গীর আলম চৌধুরী

পটিয়া পৌর নির্বাচনে ৬ নং ওয়ার্ডে কাউন্সিলর পদে নির্বাচন করবেন জাহাঙ্গীর আলম চৌধুরী

সেলিম  চৌধুরী,  স্টাফ  রিপোর্টারঃআসন্ন পটিয়া পৌরসভা নির্বাচনে ৬ নং ওয়ার্ডের কাউন্সিলর পদে   মনোনয়ন প্রত্যাশী ৭ নং ওয়ার্ডের    বিশিষ্ট  ব্যাবসায়ি সমাজ সেবক  মোঃ জাহাঙ্গীর  আলম  চৌধুরী । তরুণ  উদীয়মান  যুবনেতা  নেতা  বিভিন্ন  সামাজিক আন্দোলন সংগ্রামে প্রত্যক্ষভাবে জড়িত। তার পরিচ্ছন্ন রাজনীতি, মানুষের প্রতি সহানুভূতি, বিপদে আপদে সামাজিক দায়িত্ব পালনের মাধ্যমে এলাকার নবীন-প্রবীণ সবার কাছে পরিচিত হয়ে  উঠেছেন। মোহাম্মদ  জাহাঙ্গীর  আলম চৌধুরী  পটিয়া পৌর সদরের ৬  ওয়ার্ডের নির্বাচন  করার বিষয়টি  এ প্রতিবেদকের কাছে  নিশ্চিত করেন।   একান্ত সাক্ষাতকারে বলেন, কাউন্সিলর হিসেবে যদি তিনি নির্বাচিত হয়ে নবীন-প্রবীণদের সমন্বয়ে ৬ নং ওয়ার্ডকে একটি আদর্শ  মডেল ওয়ার্ড হিসেবে গড়ে তুলবেন। ৭নং  ওয়ার্ডকে তিনি সবার সহযোগিতায় উন্নয়ন  কাজ এগিয়ে  নেওয়ার আশাবাদী। 

 এছাড়াও  তিনি  সকলের মতামতের এলাকার  উন্নয়নের ভুমিকা  রাখার আহবান  জানিয়ে বলেন,  ধনী, মধ্যবিত্ত, গরীব তিন ক্যাটাগরীতে ভাগ করে গরীব ও মধ্যবিত্তদের জীবনযাত্রার মান উন্নয়নে উপর্যোপরি পদক্ষেপ গ্রহণ করবেন। ৬ নং  ওয়ার্ডকে সকল অপরাধ  মুক্ত  কটবেন বলে জানান । মোহাম্মদ  জাহাঙ্গীর  আলম চৌধুরী  বলেন উন্নয়নের ধারা অব্যহত রাখতে  তিনি  আগামী  পটিয়া  পৌরসভা নির্বাচনে  অংশ  গ্রহণ করবেন বলে জানান।  এলাকার সবাই মিলেমিশে থাকবেন এবং তার সবচেয়ে বড় চ্যালেঞ্জ হচ্ছে সকল অপরাধ  কর্মকান্ড মুক্ত করে সাধারণ  জনগণের সেবা নিশ্চিত করতে তিনি প্রার্থী হবেন। মোহাম্মদ  জাহাঙ্গীর  আলম  চৌধুরী  একজন সফল ব্যাবসায়ি দীর্ঘদিন তিনি  ঐ এলাকার লোকজনে খোঁজ খবর রাখেন । তিনি বলেন, আল্লাহর রহমত হলে আমি নির্বাচন করে বিজয়ী হলে মানুষের সুখে  দুঃখে পাশে থাকার ঘোষণা দিয়ে সকলের সহযোগিতা ও দোয়া ও আশীর্বাদ কামনা  করেন।