করোনায় দুস্থদের পাশে থেকে সচেতনতায় প্রচার প্রচারণা অব্যাহত রেখেছে চেয়ারম্যান ময়নুল হক

করোনায় দুস্থদের পাশে থেকে সচেতনতায় প্রচার প্রচারণা অব্যাহত  রেখেছে চেয়ারম্যান ময়নুল হক



মোঃ হাবিবুর রহমান শাকিল ডিমলা নীলফামারী প্রতিনিধি: 
বিশ্বজুড়ে করোনা মহামারীতে খুব বেশী প্রয়োজন ছাড়া মানুষ বের হতে পারছেন না ঘর থেকে। তবে অন্যান্য দেশের চেয়ে বাংলাদেশের চিত্রটা ভিন্ন। এখানে মানুষ কর্ম না করলে তাদের পরিবারের মুখে তুলে দিতে পারে অন্য। এর মধ্যে অন্যতম হচ্ছে উত্তরের জেলা নীলফামারীর ডিমলা উপজেলা। এ উপজেলাটিতে দরিদ্র ও শ্রমজীবী মানুষের হার সবচেয়ে বেশী। যার ফলে অবহেলিত এ উপজেলার মানুষগুলো বেশীরভাগই কাজের সন্ধানে পারি দেয় দক্ষিণের বড় বড় শহরে। এখন করোনা ভাইরাসের কারণে কর্মহীন হয়ে পরে ওই শ্রমজীবী মানুষরা। আর এসব কর্মহীন দুস্থ মানুষের কথা বিবেচনা করে ডিমলা  উপজেলা   টেপাখড়িবাড়ী ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান জনাব মোঃ ময়নুল হক  করোনা ভাইরাস শুরু থেকেই খাদ্য সহায়তার পাশাপাশি সামাজিক দুরত্ব বজায় রাখাসহ মানুষের সচেতনতায় প্রচার - প্রচারণা অব্যাহত রেখেছেন। এমন কি মাঝে মধ্যে তিনি শহরে মানুষের সমাগম দেখে তার সমর্থকদের সাথে নিয়ে মানুষকে ঘরমুখী করেন। তার এমন কর্মকান্ডে সন্তোষ প্রকাশ করেছেন সচেতনবাসি।তারা আরো জানান,         ৯নং টেপাখড়িবাড়ী ইউনিয়নে ৬টি প্রবেশ পথের প্রত্যেকটি পয়েন্টে,
গ্রামপুলিশ ও আনসার ভি,ডি, পি দ্বারা প্রবেশকারী লোকদের জীবানুমুক্ত করার জন্য প্রত্যেক ব্যক্তির হাতে স্প্রে করা এবং মুখে মাস্ক ব্যবহার নিশ্চিত করা হচ্ছে।                  
এবিষয়ে টেপাখড়িবাড়ী ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান জনাব মোঃ ময়নুল হক  বলেন, যে মানুষগুলোর ভোটে ইউনিয়নের চেয়ারম্যান নির্বাচিত হয়েছি আজ তাদের বিপদে রেখে আমি ঘরে থাকতে পারি না। করোনা ভাইরাস সম্পর্কে প্রচার প্রচারণাসহ আমার সাধ্যনুযায়ী পাশে থাকার চেষ্টা করছি।

মোহাম্মাদ নাসিমের করোনা থেকে মুক্তি কামনা করে দোয়া ও কোরান খতম

মোহাম্মাদ নাসিমের করোনা থেকে মুক্তি কামনা করে দোয়া ও কোরান খতম



মাসুদ রানা সিরাজগঞ্জ জেলাপ্রতিনিধিঃ
সিরাজগঞ্জের কাজিপুরে মানিকপোটল গ্রামের জামে মসজিদে সাবেক স্বাস্থ্যমন্ত্রী ও বর্ষীয়ান নেতা মোহাম্মদ নাসিমের কোরনা থেকে মুক্তি কামনায় মঙ্গলবার বাদ জোহর বিশেষ দোয়া ও মিলাদ অনুষ্ঠিত হয়। উক্ত মিলাত মাহফিল বিশেষ মোনাজাতে অংশ নেন উক্ত গ্রামের গন্যমান্য ব্যক্তিবর্গ, শিক্ষকমন্ডলী, ইউনিয়ন আওয়ামীলীগ ও অন্যান্য সহযোগী সংগঠনের নেতাকর্মী, বিভিন্ন পেশাজীবি, সমাজসেবক ও ওলামা একরামগন। এর পূর্বে মসজিদের মাদ্রাসার কয়েকজন হাফেজের মাধ্যমে কোরআন খতম দেওয়া হয়। এছাড়াও কাজিপুর ইউনিয়নের বিভিন্ন মসজিদে নামাজ শেষে দোয়া অনুষ্ঠিত হয়। এছাড়াও মেঘাই মদিনাতুল হাফিজা মাদ্রাসায় কোরআন খতম দেওয়া হয়। উল্লেখ্য যে, সাবেক স্বাস্থ্যমন্ত্রী, আওয়ামী লীগের সভাপতিমন্ডলীর সদস্য এবং ১৪ দলের মুখপাত্র মোহাম্মদ নাসিম করোনায় আক্রান্ত হয়েছেন। বর্ষীয়ান এই নেতার ছেলে সাবেক সংসদ সদস্য তানভীর শাকিল জয় এ তথ্য নিশ্চিত করেছেন।
এর আগে সোমবার (১ জুন) সকালে করোনাভাইরাসের উপসর্গ নিয়ে রাজধানী শ্যামলীর বাংলাদেশ স্পেশালাইজড হাসপাতালে তিনি ভর্তি হন। ডা. মহিউদ্দিন আহমেদের তত্ত্বাবধানে চিকিৎসা নিচ্ছেন মোহাম্মদ নাসিম। হাসপতালে ভর্তির পর তার করোনাভাইরাসের পরীক্ষার জন্য নমুনা সংগ্রহ করে পাঠানো হয়। পরীক্ষায় তার করোনা পজিটিভ আসে। তার এই করোনা থেকে মুক্তির জন্য কাজিপুরের সাধারণ জনগণ তথা মানিকপোটল গ্রামবাসী এই দোয়া ও মিলাদ মাহফিলের আয়োজন করেন।

নাটোরের বড়াইগ্রামে বঙ্গবন্ধুর জন্ম শত বার্ষিকী স্বরনে বটবৃক্ষের চারা রোপণ

নাটোরের বড়াইগ্রামে বঙ্গবন্ধুর জন্ম শত বার্ষিকী স্বরনে বটবৃক্ষের চারা রোপণ



রাজশাহী ব্যুরো
   স্বাধীন বাংলাদেশের স্থপতি , স্বাধীনতার মহানায়ক,জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের জন্মশত বার্ষিকী স্বরণে শতবর্ষী একটি (বটবৃক্ষ)চারা রোপন করা হয়েছে।

বড়াইগ্রাম উপজেলা পরিষদের উদ্যোগে মঙ্গলবার সকালে উপজেলা চত্বরে এই শতবর্ষী বটবৃক্ষ চারাটি রোপন করা হয়। এ সময় বড়াইগ্রাম উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা মোঃ আনোয়ার পারভেজ ,উপজেলা প্রকৌশলি আব্দুর রহিম সহ গন্যমান্য ব্যাক্তিবর্গ উপস্থিত ছিলেন।

বটবৃক্ষ চারা রোপণ কালে বড়াইগ্রাম উপজেলা চেয়ারম্যান ও জেলা আওয়ামী লীগের স্বাস্থ্য ও জনসংখ্যা বিষয়ক সম্পাদক ডাঃ মোঃ সিদ্দিকুর রহমান পাটোয়ারী বলেন, হাজার বছরের শ্রেষ্ঠ বাঙালি বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের জন্মশত বার্ষিকী উপলক্ষে উপজেলা চত্বরে গ্রাম বাংলার ঐতিহ্যবাহী শতবর্ষী বটবৃক্ষের চারা রোপণ করেছি এজন্য যে, উপজেলা চত্বরে নানা শ্রেণি-পেশার মানুষ বিভিন্ন প্রয়োজনে প্রতিদিনই আসে।

একসময় বৃক্ষটি বড় হবে এবং উপজেলায় আগত মানুষগুলো বৃক্ষের ছায়ায় বসে বিশ্রাম নিতে পারবে।
তিনি আরো জানান, চারা গাছটির চারপাশে ইট দিয়ে বাঁধাই সহ টাইলস বসিয়ে দেওয়া হবে এবং এটিকে ‘বঙ্গবন্ধুর চত্বর’ ঘোষণা করা হবে।

সিংড়ায় মশক নিধন কার্যক্রম উদ্বোধন

সিংড়ায় মশক নিধন কার্যক্রম উদ্বোধন



রাজু আহমেদ, সিংড়া: 
নাটোরের সিংড়া পৌর এলাকায় মশক নিধন কার্যক্রম উদ্বোধন করেছেন পৌর আওয়ামী লীগের সাধারন সম্পাদক, সিংড়া পৌরসভার মেয়র আলহাজ্ব মো: জান্নাতুল ফেরদৌস।

তিনি মঙ্গলবার বিকেলে ডেঙ্গুসহ মশাবাহিত রোগ প্রতিরোধে কার্যকর পদক্ষেপ হিসেবে এ  উদ্যোগ গ্রহন করেছেন। 

এসময় পৌর সচিব আব্দুল মতিনসহ কর্মকর্তা, কর্মচারীবৃন্দ উপস্থিত ছিলেন।


করোনার মধ্যেই মাদক ব্যবসায়ী আটক

করোনার মধ্যেই মাদক ব্যবসায়ী আটক



শামিম উদ্দিন চাঁপাইনবাবগঞ্জ প্রতিনিধি :
করোনার মধ্যেই দূর্বার গতিতে চলা মাদক ব্যবসায়ীর বিরুদ্ধে দুটি সফল অভিযান। ১৫০০ পিস ইয়াবাসহ দুজন আটক।
        আজ দুপুরে গোমস্তাপুর থানা এলাকায় অভিযান  করে শিবগঞ্জের আসামী আজমকে ৭০০(সাতশত) পিচ ইয়াবাসহ  আটক  করেছেন এস আই জাহিদ। এবং বিকালে অপর অভিযানে নাচোল থানা এলাকায় রাজশাহীর আসামী  শ্রী প্রত্যয়কে ৮০০ (আটশত) পিস ইয়াবাসহ আটক করেন।

স্বাস্থ্যবিধি মেনে ৪ জুন থেকে চলবে আন্তনগর কুড়িগ্রাম এক্মপ্রেস

স্বাস্থ্যবিধি মেনে ৪ জুন থেকে চলবে আন্তনগর কুড়িগ্রাম এক্মপ্রেস



 মোঃইয়ামিন সরকার আকাশ।
কুড়িগ্রাম প্রতিনিধিঃ
করোনাভাইরাস মহামারির কারণে দুই মাসেরও বেশি সময় বন্ধ থাকার পর গত রবিবার (৩১ মে) থেকে সীমিত পরিসরে গণপরিবহন চালুর সিদ্ধান্ত দিয়েছে সরকার। সেই ধারাবাহিকতায় গত রবিবার থেকে আট জোড়া ট্রেন ঢাকা থেকে বিভিন্ন রুটে ছেড়ে যায়। একই সঙ্গে বিভিন্ন স্টেশন থেকে ঢাকায়ও আসে। আর আগামীকাল বুধবার( ৩ জুন )থেকে আরও ১১ জোড়া ট্রেন চলাচল শুরু করবে বলে জানা যায় বাংলাদেশ রেলওয়ে থেকে । তবে ১১ জোড়ার মধ্যে আন্তনগর কুড়িগ্রাম এক্সপ্রেস আগামীকাল সাপ্তাহিক বন্ধের কারণে চলবে না । বৃহঃবার (৪ জুন )থেকে যথারীতি সরকারি স্বাস্থ্যবিধি মেনে চলবে বলে জানান কুড়িগ্রাম রেলওয়ের ষ্টেশন মাষ্টার মোঃ মোশারফ হোসেন । তিনি আরো জানান,সবধরণের সুরক্ষা ব্যবস্থা করা হয়েছে কুড়িগ্রাম রেলওয়ে স্টেশনে পাশাপাশি সামাজিক দুরুত্বের বিষয়টিও নিশ্চিত করা হবে বলে জানান তিনি । কুড়িগ্রাম জেলা থেকে ঢাকা যাওয়ার জন্য ২২৫ টি সিটের মধ্যে অর্ধেক সিট অনলাইনে দেয়া হয়েছে,অনলাইনে টিকিট কেটে সীমিত পরিসরে চলবে আন্তনগর এই ট্রেনটি । কুড়িগ্রাম রেলওয়ে স্টেশন থেকে আরো জানা যায়, ৪ জুন থেকে যাত্রার শুরু ১ঘন্টা পূর্বে অর্থ্যাৎ ৭টা ১৫ মি. এর ১ ঘন্টা পূর্বে রেল স্টেশনে মাস্ক,হ্যান্ড গ্লোভস পরিহিত হয়ে উপস্থিত হতে হবে যাত্রীদের । এই ১ ঘন্টা সময় ধরে যাত্রীদের স্বাস্থ্যবিধির বিষয়টি নজরদারি করবে রেলওয়ে কর্তৃপক্ষ । 

এদিকে করোনা মোকাবিলায় রেলে যাত্রী পরিবহনে স্বাস্থ্য অধিদফতরের কারিগরি কমিটি কয়েকটি নির্দেশনা দিয়েছে।
নির্দেশনাগুলো হচ্ছে-
১. স্টেশনগুলোতে ব্যক্তিগত সুরক্ষা সরঞ্জাম সংরক্ষণ।
২. জরুরি পরিকল্পনা প্রণয়ন।
৩. বর্জ্য ব্যবস্থাপনা ক্ষেত্র স্থাপন।
৪. প্রতিটি ইউনিটের জবাবদিহি নিশ্চিত করা।
৫. রেলওয়ে কর্মীদের প্রশিক্ষণের ব্যবস্থা করা।
৬. রেলকর্মীদের স্বাস্থ্য পর্যবেক্ষণ ও স্বাস্থ্য বিষয়ক অবস্থা নথিভুক্ত করা।
৭. অসুস্থ অনুভবকারীদের সঠিক সময়ে চিকিৎসার ব্যবস্থা নেয়া।
৮. তাপমাত্রা পর্যবেক্ষণের সরঞ্জাম স্টেশনগুলোর প্রবেশপথে স্থাপন করা।
৯. স্টেশনে আগত সবার তাপমাত্রা পরীক্ষা করা।
১০. যেসব যাত্রীর শরীরের তাপমাত্রা ৩৭ দশমিক ৩ ডিগ্রি সেলসিয়াসের ওপরে থাকবে তাদের ওই এলাকায় অস্থায়ী কোয়ারেন্টাইনে রাখা এবং প্রয়োজনীয় চিকিৎসাসেবার ব্যবস্থা করা।
১১. ট্রেনে বায়ু চলাচল বৃদ্ধি।
১২. সেন্ট্রাল এয়ারকন্ডিশনার ব্যবহারের ক্ষেত্রে স্বাভাবিক মাত্রায় চালানো এবং বিশুদ্ধ বাতাস চলাচল বৃদ্ধি করা। সব এয়ার সিস্টেমের ফিরতি বাতাস বন্ধ রাখতে হবে।
১৩. জনসাধারণের ব্যবহারের স্থানগুলো জীবাণুনাশক দিয়ে পরিষ্কার করতে হবে।
১৪. টয়লেটগুলোতে তরল সাবান থাকতে হবে। সম্ভব হলে হ্যান্ড স্যানিটাইজার এবং জীবাণুনাশক যন্ত্র স্থাপন করা যেতে পারে।
১৫. যাত্রীদের অপেক্ষা করার জন্য ট্রেন কম্পার্টমেন্ট ও অন্যান্য এলাকা যথাযথভাবে পরিষ্কার পরিচ্ছন্ন রাখতে হবে।
১৬. প্রতিটি ট্রেন যাত্রা শুরুর আগে জীবাণুমুক্ত করতে হবে। সিট কভারগুলোকে প্রতিনিয়ত ধোয়া, পরিষ্কার এবং জীবাণুমুক্ত করতে হবে।
১৭. প্রতিটি ট্রেনে হাতে-ধরা থার্মোমিটার থাকতে হবে। যথাযথ স্থানে একটি জরুরি এলাকা স্থাপন করতে হবে। যেখানে উপসর্গ আছে এমন যাত্রীদের অস্থায়ী কোয়ারেন্টাইনে রাখা যাবে।
১৮. যাত্রীদের অনলাইনে টিকিট ক্রয় করার জন্য পরামর্শ দিতে হবে।
১৯. সারিবদ্ধভাবে ওঠানামার সময়ে যাত্রীদের পরস্পর থেকে এক মিটারেরও বেশি দূরত্ব বজায় রাখতে হবে, ভিড় এড়িয়ে চলতে হবে।

মাধবপুরে গাছের সাথে বেধে চোর কে গনপিটুনি দিয়ে পুলিশে সোপর্দ

মাধবপুরে গাছের সাথে বেধে চোর কে গনপিটুনি দিয়ে পুলিশে সোপর্দ





লিটন পাঠান,হবিগঞ্জ জেলা প্রতিনিধি

হবিগঞ্জের মাধবপুরে চুরি করতে গিয়ে জনতার হাতে আটক যুবক সোহেল মিয়া কে গাছের সাথে বেধে নির্যাতনের পর পুলিশে সোপর্দ করা হয়েছে, (২-জুন) ভোর রাতে মাধবপুর উপজেলার শন্তোষপুর গ্রামে এঘটনা ঘটে। ওই গ্রামের মৃত কনু মিয়ার ঘরে ৩/ ৪জন চোর ঢুকে এসময় এক নারী আচ করতে পেরে চিৎকার করলে গ্রামবাসী ধাওয়া করে সোহেল (২২) কে আটকে ফেলে ।

পরে একটি গাছের সাথে বেধে গনপিটুনী দেয়া হয় খবর পেয়ে মাধবপুর থানার উপ পরির্দশক ওয়াহেদ গাজী পুলিশ সহ ঘটনা স্থলে পৌছলে গ্রামবাসী তাকে পুলিশে সোপর্দ করে। মাধবপুর থানার অফিসার ইনচার্জ (ওসি) ইকবাল হোসেন সত্যতা নিশ্চত করে বলেন ধৃত সোহেল উপজেলার চারা বাংগা গ্রামের হুসন আলীর ছেলে।

সে পেশাদার চোর তার বিরুব্ধে থানায় মামলা রয়েছে,গন পিটুনী আহত সোহেল কে প্রাথমিক চিকিৎসা দেয়া হয় দুপুরে তাকে কোর্টে প্রেরন করা হয়েছে।

এক টাকায় শিক্ষা সংগঠন থেকে লাইভ এ আসছেন করোনার হটস্পট নিয়ে কথা বলতে

এক টাকায় শিক্ষা সংগঠন থেকে  লাইভ এ আসছেন করোনার হটস্পট নিয়ে কথা বলতে




রিয়াজুল করিম রিজভী প্রতিনিধি চট্টগ্রামঃ-

আজ ঠিক রাত ৯ টায় হাটহাজারী দর্পন এর স্বত্বাধিকারী এবং সমকাল পত্রিকার হাটহাজারী প্রতিনিধি মোহাম্মদ আলী আসবেন শিক্ষা নিয়ে কাজ করা দেশের সবচেয়ে জনপ্রিয় সংগঠন "এক টাকায় শিক্ষা"-র ফেসবুক পেইজের লাইভে। অনুষ্ঠানটি সঞ্চালনা করবেন এক টাকায় শিক্ষার প্রতিষ্ঠাতা এবং সভাপতি রিজুয়ান মজকুরি।

কোভিড-১৯ এর এই সময়ে গত তিনমাস ধরে প্রতিনিয়ত বিভিন্ন সংবাদ প্রদানের মাধ্যমে মোহাম্মদ আলী সচেতন করেছেন অসংখ্য মানুষকে। হয়তো নিজের অজান্তে বাঁচিয়ে দিয়েছেন অনেককে। দেশকে বাঁচাতে গিয়ে বর্তমানে তিনিও করোনায় আক্রান্ত হয়ে বাসায় চিকিৎসাধীন রয়েছেন। তবে, ভেঙে পরেননি। দৃঢ় আত্মবিশ্বাস নিয়ে টিকে আছেন তিনি।ওনার মনোবল এবং বিশ্বাস এর সাথে গত তিনমাসের করোনা ভাইরাস নিয়ে অভিজ্ঞতা সবার সাথে শেয়ার করার জন্য ফেসবুক লাইভে আসছেন তিনি।

অন্যদিকে এক টাকায় শিক্ষার প্রতিষ্ঠাতা এবং সভাপতি রিজুয়ান মজকুরি ইতিমধ্যেই বহু মানবিক কাজ করে এক অনন্য দৃষ্টান্ত স্থাপন করেন। মাত্র এক টাকা দিয়ে তিনি শিক্ষার আলোর যে মশাল প্রজ্জ্বলন করেছেন বোঝা যায় তা থামার নয়। আজকের ফেসবুক লাইভে অনুষ্ঠানে তিনি সবাইকে সাংবাদিক মোহাম্মদ আলীর কাছে কোনো প্রশ্ন থাকলে তা জিজ্ঞেস করার এবং লাইভ উপভোগ করার আমন্ত্রণ জানান।

বিদ্যুতের পুন:সংযোগ স্থাপনের জের ধরে অভয়নগরে দু’গ্রুপের সংঘর্ষে আহত-১৫

বিদ্যুতের পুন:সংযোগ স্থাপনের জের ধরে অভয়নগরে দু’গ্রুপের সংঘর্ষে আহত-১৫



মোঃ দেলোয়ার হোসেন , অভয়নগর (যশোর) প্রতিনিধি : 

অভয়নগর উপজেলার শমসপুর গ্রামে ঘুর্ণিঝড় আম্পানের তান্ডবে ক্ষতিগ্রস্থ বিদ্যুতের সংযোগ পুনরায় স্থাপনের জের ধরে দু’গ্রুপের মধ্যে সংঘর্ষে ১৫জন গুরুতর আহত হয়েছেন। আহতদের মধ্যে আশংকাজনক অবস্থায় ৫জনকে খুলনা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে এবং ১০জনকে অভয়নগর উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ভর্তি করা হয়েছে। সোমবার রাতে উপজেলার পায়রা ইউনিয়নের শমসপুর গ্রামে এ সংঘর্ষের ঘটনা ঘটে। হাসপাতালে চিকিৎসাধীন উপজেলার শমসপুর গ্রামের শাহজাহান বিশ্বাসের ছেলে আসাদ বিশ্বাস (৪০) জানান, ঘুর্ণিঝড় আম্পানে বিদ্যুতের সংযোগ বিচ্ছিন্ন হওয়ার পর পুনরায় তা সংযোগ স্থাপন নিয়ে প্রতিবেশী রিয়াজ উদ্দিনের পরিবারের সদস্যদের সাথে দ্ব›দ্ব চলে আসছিল। তারই জের ধরে সোমবার বিকালে আসাদ বিশ্বাসের বড়ভাই আজাদ বিশ্বাস পায়রা মোড়ে গেলে আজাদ বিশ্বাস ও রিয়াজ উদ্দিনের মধ্যে কথাকাটাকাটির একপর্যায়ে রিয়াজ উদ্দিন আজাদ বিশ্বাসকে মারপিট করে। এ ঘটনায় আজাদ বিশ্বাস বাদী হয়ে অভয়নগর থানায় অভিযোগ করেন বলে আসাদ বিশ্বাস জানান। ওই রাতে আজাদ বিশ্বাসের ছেলে বাদশা বিশ্বাস বাড়ি ফেরার পথে বাদশার পথ গতিরোধ করে বাদশাকে ধারালো অস্ত্র দিয়ে কুপিয়ে গুরুতর জখম করে একই গ্রামের ইফাজ উদ্দিন ও রিয়াজ উদ্দিনের পরিবারের সদস্যরা। এসময় বাদশা বিশ্বাসকে উদ্ধার করতে আসাদ বিশ্বাস, তার স্ত্রী সুমী বেগম ঘটনাস্থলে গেলে রিয়াজ উদ্দিনের পরিবারের সদস্যরা তাদেরকেও কুপিয়ে জখম করে। হাসপাতালে চিকিৎসাধীন উপজেলার পায়রা ইউনিয়নের শমসপুর গ্রামের ওয়াজেদ আলী গাজীর ছেলে ইফাজ উদ্দিন (৩৮) জানান, সে ও তার বড়ভাই রিয়াজ উদ্দিন রাতের খাবার খাওয়ার সময় আজাদ বিশ্বাসের ছেলে বাদশা বিশ্বাস, রাজু বিশ্বাসসহ ৫-৭জন ধারালো অস্ত্র নিয়ে ইফাজ উদ্দিন ও রিয়াজ উদ্দিনকে কুপিয়ে জখম করে। এসময় ইফাজ উদ্দিন, তার স্ত্রী তালেহা বেগম ও রিয়াজ উদ্দিনের চিৎকারে এলাকাবাসী ছুটে এসে হামলাকারী বাদশা বিশ্বাস, রাজু বিশ্বাসসহ ৫-৭ জনকে পিটিয়ে জখম করে। এঘটনা ছড়িয়ে পড়লে দু’গ্রুপের সদস্যদের মধ্যে সংঘর্ষ বাঁধে। সংঘর্ষে আহত হন উভয় গ্রুপের ১৫জন। আহতদের অভয়নগর উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ভর্তি করা হয়। আহতদের মধ্যে ৫জনের অবস্থা আশংকাজনক হওয়ায় তাদেরকে খুমেক হাসপাতালে স্থানান্তরিত করা হয়। মঙ্গলবার দুপুরে অভয়নগর থানার ওসি মো. তাজুল ইসলাম জানান, থানা পুলিশের তৎপরতায় ঘটনাস্থলের পরিস্থিতি স্বাভাবিক রয়েছে। মামলা প্রক্রিয়াধীন রয়েছে। মামলা হলে, আইনানুগ ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে। 


আল্লামা হাশেমীর মৃত্যুতে রেজাউল করিম চৌধুরীর শোক প্রকাশ

আল্লামা হাশেমীর মৃত্যুতে রেজাউল করিম চৌধুরীর শোক প্রকাশ




নিজস্ব সংবাদদাতা 

আহলে সুন্নাত ওয়াল জামাআত বাংলাদেশ’র চেয়ারম্যান, ইমামে আহলে সুন্নাত আল্লামা কাযী মুহাম্মদ নুরুল ইসলাম হাশেমীর মৃত্যুতে গভীর শোক ও শ্রদ্ধা জানিয়েছেন চট্টগ্রাম মহানগর আওয়ামী লীগের সিনিয়র যুগ্ম-সাধারণ সম্পাদক ও চট্টগ্রাম সিটি কর্পোরেশন নির্বাচনে আওয়ামী লীগ মনোনীত মেয়র পদপ্রার্থী বীর মুক্তিযোদ্ধা আলহাজ্ব এম.রেজাউল করিম চৌধুরী। 

শোকবার্তায় তিনি বলেন, আলেমকূলের এই শিরোমণি আহলে সুন্নাত ওয়াল জামাতের সর্বজন শ্রদ্ধেয় ইমাম হিসেবেও উপমহাদেশে অতুলনীয় স্থান গড়ে নেন।নিজেই হয়ে ওঠেন অনুপম অনুসরণীয় আদর্শ।

এই মহান ব্যক্তি পীরে কামেল, আল্লামা মুহাম্মদ নুরুল ইসলাম হাশেমী ছাহেব কেবলা (মুদ্দাজিল্লুহুল আলী) ইন্তেকাল করেছেন (ইন্না লিল্লাহি ওয়া ইন্না ইলাইহি রাজিউন)। আমি মরহুমের আত্মার মাগফেরাত কামনা করছি এবং শোক-সন্তপ্ত পরিবারের সদস্যদের প্রতি গভীর সমবেদনা জানাচ্ছি।’  মহান আল্লাহ পাক হুজুর’কে জান্নাতুল ফেরদৌস দান করুন। আমিন।

নাটোরের লালপুরে ট্রেনে কাটা পড়ে অজ্ঞাত ব্যাক্তির মৃত্যু

নাটোরের লালপুরে ট্রেনে কাটা পড়ে অজ্ঞাত ব্যাক্তির মৃত্যু




রাজশাহী ব্যুরো
নাটোরের লালপুর উপজেলার আজিমনগর রেলওয়ে স্টেশনে ঢাকা থেকে পঞ্চঁগরগামী পঞ্চঁগর ৭৯৩ আপ ট্রেনে কাটা পড়ে অজ্ঞাত এক ব্যাক্তির মৃৃত্যু হয়েছে।

মঙ্গলবার (০২ জুন) রাত সাড়ে ৩দিকে উপজেলার আজিমনগর রেলওয়ে স্টেশনের দক্ষিন দিকের পৌর গোরস্থান এলাকায় এই ঘটনা ঘটে।

স্থানীয় সূত্রে জানা গেছে, মঙ্গলবার রাত সাড়ে ৩টার দিকে ঢাকা থেকে পঞ্চগরগামী ৭৯৩ আপ ট্রেনে অজ্ঞাত এক ব্যাক্তির কাটা পড়ে ঘটনাস্থলেই তার মৃৃত্যু হয়। নিহত ব্যাক্তির লাশ ট্রেনে কেটে ছিন্ন বিচ্ছন্ন হয়ে যায়। পরে সকালে স্থানীয়রা বিষটি আজিমনগর রেলওয়ে স্টেশন মাস্টর কে জানালে। স্টেশন মাস্টার বিষয়টি জিআরপি পুলিশ কে খবরদিলে সকাল ১১টার দিকে জিআরপি পুুলিশ লাশটি উদ্ধার করে ময়নাতদন্তের জন্য মর্গে প্রেরণ করেন এবং জিআরপি থানায় একটি অপমৃত্যু মামলা হয়েছে।

জিআরপি থানার এসআই আমিরুল ইসলাম ঘটনার সত্যতা নিশ্চিত করেছেন।
বুলবুল আহাম্মেদ

নাগরপুরে এসএসসিতে সাফল্যের চমক দেখালেন শতবর্ষ প্রতিষ্ঠান সরকারি যদুনাথ মডেল স্কুল এন্ড কলেজ

নাগরপুরে এসএসসিতে সাফল্যের চমক দেখালেন শতবর্ষ প্রতিষ্ঠান  সরকারি যদুনাথ মডেল স্কুল এন্ড কলেজ



 
ডা.এম.এ.মান্নান,টাঙ্গাইল জেলা প্রতিনিধিঃ টাঙ্গাইলের নাগরপুরে ঐতিহ্যবাহী ও শতবর্ষ প্রতিষ্ঠান সরকারি যদুনাথ মডেল স্কুল এন্ড কলেজ তার ঐতিহ্য ধরে রেখেছে।এবারের ২০২০ সালের  এসএসসি ফলাফল তার প্রমান। লেখাপড়ার পাশাপাশি খেলাধুলা,সাহিত্য ও সাংস্কৃতিকেও বিশেষ অবদান রাখছে এই ঐতিহ্যবাহী  বিদ্যালয়টি।খেলাধুলায় নাগরপুর উপজেলা জাতীয় ক্রিড়া প্রতিযোগিতায় বহুবার সেরা ও  চ্যাম্পিয়ন হয়ে জেলা ও বিভাগ পর্যায়ে জাতীয়ভাবে অংশগ্রহন করে জাতীয় ক্রিড়া পুরস্কার ছিনিয়ে এনেছে।এই বিদ্যালয়ের সাবেক শিক্ষার্থীরা জাতীয় ও আন্তজার্তিক পর্যায়ে সামাজিক,রাজনৈতিক ও রাষ্ট্রীয় গুরুত্বপৃর্ণ দায়িত্ব পালন করে মেধায় স্বাক্ষর রেখেছে এবং অব্যাহত আছে। ২০২০ সালে এসএসসি পরীক্ষার ফলাফলে ২২৫ জন জেনারেল ও ভোকেশনাল ১৩৮ জন শিক্ষার্থী মোট  ৩৬৩ জন ছাত্র-ছাত্রী পরিক্ষায় অংশগ্রহন করেছেন। গত ৩১ মে ২০২০ খ্রি. জাতীয়ভাবে ফলাফল ঘোষনা করেছেন শিক্ষা মন্ত্রালয়। ৩৬৩ জনের মধ্যে ৪৮ জনের রেজাল্ট খারাপ হয়েছে। মোট ৩১(১৭+১৪) জন A+ পেয়ে নাগরপুর উপজেলার মধ্যে সেরা হয়েছে প্রতিষ্ঠানটি এবং জেলা পর্যায়েও ভাল ফলাফলের দিক  থেকে প্রতিষ্ঠানটি শীর্ষের তালিকায় স্হান পেয়েছে।নাগরপুরের মাটি ও মানুষের কাছে প্রিয় প্রতিষ্ঠানটি হওয়ার শিক্ষক, ছাত্র-ছাত্রী,অভিবাবক, সাবেক শিক্ষার্থী ও জনগনের মাঝে ব্যাপক আনন্দ ও উল্লাস লক্ষ্যে করা যাচ্ছে। প্রতিষ্ঠানের শিক্ষকদের নিয়মিত পাঠদান ও প্রচুর পরিশ্রম, মেধা ও মননশীলতার নিখুঁত প্রয়োগ সহ শিক্ষার্থী,অভিভাবকদের সাথে নিবিড় যোগাযোগ ও সম্পর্কের কারণেই প্রতি বছরের ন্যায় এবারেও সেরা হয়ে উঠছে এ প্রিয় শতবর্ষ প্রতিষ্ঠানটি।প্রতিটি শিক্ষার্থীর প্রতি নিরলস শ্রম রয়েছে বিদ্যালয়টির  শিক্ষক/শিক্ষিকাদের। দুর্বল ও অমনোযোগী ছাত্রছাত্রীর প্রতি রয়েছে কঠোরতা ও অতিরিক্ত পাঠদান আর মেধাবী ছাত্রছাত্রীর প্রতি রয়েছে আলাদা দৃষ্টি ও খেয়াল এবং বিভিন্ন ক্লাশ পরিক্ষার সেরাদের সেরা ছাত্র ঘোষনা করে আয়োজন করে দেওয়া হয় পুরস্কার ও মেধা বৃত্তি। সেরা শিক্ষক হিসাবে আইসিটি প্রশিক্ষণের  প্রতিষ্ঠানটির ভারপ্রাপ্ত প্রধান শিক্ষক/অধ্যক্ষ মো.শফিকুল ইসলাম নিউজল্যান্ড-২০১৯  ও আইসিটি শিক্ষক মো.সোহেল রানা থাইল্যান্ড-২০১৯ সরকারীভাবে আইসিটি শিক্ষা ও প্রশাসনিক পরিচালনা বিষয়ক ট্রেনিং নিয়ে এই শতবর্ষ প্রতিষ্ঠানে শিক্ষা ক্ষেত্রে ব্যাপক অবদান রাখছে।  প্রতিষ্ঠানটির অন্যান্য সকল শিক্ষকদের  উচ্চতর একাডেমিক শিক্ষা রয়েছে ও বিষয়ভিত্তিক রয়েছে আলাদা ট্রেনিং।
নিয়মিত দেখাশোনার জন্য রয়েছে আলাদা জনবল। এখানে কম্পিউটার ল্যাব, ডিজিটাল ক্লাশ রুম, মাল্টিমিডিয়া ক্লাশ সহ আধুনিক বিজ্ঞানাগার রয়েছে।রয়েছে বিশাল আকারে ছাত্র হোস্টেল, সাথে রয়েছে জামে মসজিদ ও বিশাল বড় মনোরম প্রাকৃতিক পরিবেশে পাঁকা ঘাটলা বাঁধা পুকুর, রয়েছে বিশাল বড় খেলার মাঠ। সরকারি যদুনাথ মডেল স্কুল এন্ড কলেজ এর সুযোগ্য ভারপ্রাপ্ত প্রধান শিক্ষক/অধ্যক্ষ জ্বনাব মো.শফিকুল ইসলাম স্যারের কাছে অভিমত জানতে চাইলে তিনি বলেন, বিদ্যালয়ের শিক্ষার্থীরা শুধু এসএসসি পরীক্ষার ভাল ফলাফল ছাড়াও সরকারি-বেসরকারি অন্যান্য পরীক্ষায় ও জেলার শীর্ষ স্থান দখল করে থাকে প্রতিবছর। এটা শুধুমাত্র শিক্ষকদের কঠোর পরিশ্রম, অভিভাবকের আন্তরিকতা, সর্বোপরি বিদ্যালয় পরিচালনা কমিটি,উপজেলা নির্বাহী অফিসার মহোদয়, উপজেলা মাধ্যমিক শিক্ষা অফিসার ও  আমার প্রানপ্রিয় শিক্ষার্থীদের প্রচেষ্টার ফল। বিদ্যালয়ের আজকের এ রেজাল্ট অবস্থানে উপজেলা পেরিয়ে জেলায় ভাল ফলাফল প্রতিষ্ঠানের তালিকায় স্থান দখল করেছে।তিনি এ ফলাফলের জন্য মহান আল্লাহর দরবারে শুকুরিয়া,আলহামদুলিল্লাহ ও পাশাপাশি প্রতিষ্ঠান পরিচালনা পরিষদ, শিক্ষক-শিক্ষিকা,কর্মকর্তা, কর্মচারী ও অভিভাবক  মন্ডলীদেরকে আন্তরিক ধন্যবাদ জ্ঞাপন করেছেন।

নওগাঁয় বাঁধা লাশ দাফনে গ্রামবাসীর নদীর ধারে কবর দিল পুলিশ

নওগাঁয় বাঁধা লাশ দাফনে গ্রামবাসীর নদীর ধারে কবর দিল পুলিশ





মোঃ ফিরোজ হোসাইন 
 রাজশাহী ব্যুরো

নওগাঁয় লাশ দাফনে গ্রামবাসীর বাঁধা :নদীর ধারে কবর দিল পুলিশ
নওগাঁর বদলগাছীতে করোনা উপসর্গ নিয়ে মারা যাওয়া নাসিমা বেগম(২৫) নামে এক পোশাক কারখানার শ্রমিকের লাশ দাফনে বাঁধা দেয়ার অভিযোগ উঠেছে গ্রামবাসীর বিরুদ্ধে। অবশেষে পুলিশ সোমবার সকাল সাড়ে ৭টার দিকে উপজেলার তাজপুর গ্রামের ছোট যমুনা নদীর তীরে দাফন করে। নাসিমা বেগম তাজপুর গ্রামের মাসুদ আলীর মেয়ে।

সাবেক স্বাস্থ্যমন্ত্রী মোহাম্মাদ নাসিম এম পি করোনায় আক্রান্ত দেশ বাসীর কাছে দোয়া কামনা

সাবেক স্বাস্থ্যমন্ত্রী মোহাম্মাদ নাসিম এম পি করোনায় আক্রান্ত দেশ বাসীর কাছে দোয়া কামনা
 



মাসুদ রানা সিরাজগঞ্জ জেলাপ্রতিনিধিঃ মহামারী করোনাভাইরাসে আক্রান্ত হয়েছেন আওয়ামলীগের সভাপতিমগুলীর সদস্য ও সাবেক স্বাস্থ্যমন্ত্রী সিরাজগঞ্জ-১ (কাজিপুর) আসনের সংসদ সদস্য মোহাম্মদ নাসিম। সোমবার রাতে তার কোভিড-১৯ পজিটিভ রিপোর্ট এসেছে।
বর্ষীয়ান এই রাজনীতিক এর ছেলে সাবেক সংসদ সদস্য তানভীর শাকিল জয় এ তথ্য নিশ্চিত করেছেন।
এর আগে শারীরিক ‘দুর্বলতা’ নিয়ে রাজধানীর শ্যামলীর বাংলাদেশ স্পেশালাইজড হসপিটালে ভর্তি হন মোহাম্মদ নাসিম। হাসপতালে ভর্তির পর তার করোনাভাইরাসের পরীক্ষার জন্য নমুনা সংগ্রহ করে পাঠানো হয়। পরীক্ষায় তার করোনা পজিটিভ আসে।
মোহাম্মদ নাসিমের ছেলে ও সাবেক সংসদ সদস্য তানভীর শাকিল জয় সকলের কাছে দোয়া চেয়ে জানান, বাবার শারীরিক অবস্থা এখন স্থিতিশীল আছে। শ্বাসকষ্ট বা করোনার উপসর্গ নেই। ইউরিনের সমস্যা আছে। আপাতত এই হসপিটালে রেখেই চিকিৎসা চলবে। সমস্যা বেশি হলে সিএমএইচএ নিয়ে যাওয়া হবে।
তিনি বলেন, বাবা শারীরিকভাবে দুর্বল অনুভব করায় ওনাকে স্যালাইন দিয়ে রাখা হয়েছে। তবে উনি সার্বিকভাবে স্থিতিশীল আছেন।

নওগাঁর পোরশার হাটে অতিরিক্ত টোল আদায়, ভ্রাম্যমাণ আদালতে জরিমানা

নওগাঁর পোরশার হাটে অতিরিক্ত টোল আদায়, ভ্রাম্যমাণ আদালতে জরিমানা




 মোঃ ফিরোজ হোসাইন  
রাজশাহী ব্যুরো

নওগাঁর পোরশা উপজেলার গাংগুরিয়া হাটে দোকানিদের কাছ থেকে অতিরিক্ত টোল আদায়ের অপরাধে ভোক্তা অধিকার আইন ২০০৯ এর ৪০ ধারা মোতাবেক ২০ হাজার টাকা জরিমানা করেন। মঙ্গলবার (২জুন) গাংগুরিয়া হাটে অভিযান পরিচালনা করেন নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট সেলিম আহমেদ।

এদিকে, অতিরিক্ত টোল আদায়ের ব্যাপারে হাট ইজারাদার ভুল স্বীকার করেছেন।

নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট সেলিম আহমেদ জানান, হাটের ইজারাদার কর্তৃক নির্ধারিত হারের চেয়ে অধিক হারে টোল আদায়ের অভিযোগ পাওয়ার প্রেক্ষিতে মোবাইল কোর্ট পরিচালনা করা হয়। সরেজমিনে, ইজারাদার অতিরিক্ত হারে বা কোন কোন ক্ষেত্রে নির্ধারিত হারের চেয়ে ৩০ গুন পযর্ন্ত বেশি হারে টোল আদায় করছে এমন প্রমাণ পাওয়া যায়। অভিযোগ প্রমানিত হওয়ায় ইজরাদারকে ২০ হাজার টাকা জরিমানা ও ভবিষ্যতের জন্য সতর্ক করা হয়।

নওগাঁর আত্রাইয়ে মৃৎশিল্পীদের দুর্দিন

নওগাঁর আত্রাইয়ে মৃৎশিল্পীদের দুর্দিন



মোঃ ফিরোজ হোসাইন 
রাজশাহী ব্যুরো

আত্রাই (নওগাঁ) থেকে: করোনা ভাইরাসের প্রভাবে ভালো নেই নওগাঁর আত্রাই উপজেলার মৃৎশিল্পীরা। উপজেলার ছোট যমুনা নদীর ও আত্রাই নদীর  তীরবর্তী দাঁড়িয়ে থাকা ভবানীপুর ও নন্দনালী পালপাড়া যেন শিল্পীর তুলিতে আঁকা একটি স্বর্ণালী ছবি। উপজেলার ভবানীপুর, রাইপুর, মিরাপুর, সাহেবগঞ্জ, বেওলা, পাঁচুপুর নন্দনালী সহ বিভিন্ন এলাকায় ছড়িয়ে ছিটিয়ে রয়েছে অসংখ্য কুটির নয়নাভিরাম মৃৎ শিল্পীদের বাসস্থান। যা সহজেই সবার মনকে পুলকিত করে। আর এ মৃৎশিল্প’র ঐতিহ্য আঁকড়ে থাকা পাল বংশের লোকদের টিকে থাকা যেন কঠিন হয়ে পড়েছে।

এক সময় এ গ্রামগুলিতে মৃৎশিল্প’র জৌলুস ছিল। এ শিল্পে জড়িয়ে ছিল এখানের শতাধিক পরিবার। হাতে গোনা কয়েকটি পরিবার কষ্টে-শিষ্টে তাদের পূর্ব-পুরুষদের এ পেশা ধরে রেখেছেন। কিন্তু বর্তমানে করোনা ভাইরাসের কারনে সম্পুর্নরুপে বন্ধ হয়ে গেছে এ মাটির কাজ। তাই এই কাজ বন্ধ হয়ে যাওয়ায় অনকেই হতাশা হয়ে পড়েছে। এক সময় উপজেলার এসব গ্রামসহ আশেপাশের বিভিন্ন এলাকার পরিবারও প্রত্যক্ষভাবে এ শিল্পের সাথে জড়িত ছিল। হাড়ি, পাতিল, কলসি, ব্যাংক, পিঠা তরির ছাঁচ, পুতুলসহ ছোট-ছোট খেলনা ইত্যাদি সব জিনিসপত্র তৈরি করতে। এখানকার তৈরি মৃৎশিল্পর অনেক সুনাম ও সুখ্যাতি থাকলেও এখন শুধুমাত্র দধির পাত্র ও পিঠার খালা তৈরি করে কোন রকমে জীবিকা নির্বাহ করে আসছে। এ অঞ্চল থালা পাত্রের কদর বেশী রয়েছে। একটি থালা তৈরিতে মাটি ও পোড়ানো বাবদ প্রায় ৫ টাকা খরচ হলেও তা বাজারে বিক্রি হয় ১০ টাকা। এর মধ্যই রয়েছে শ্রম ও মাল বহনের খরচ। ফলে লাভের মুখ তারা দেখে না। অথচ ঐ একটি থালা এক হাতে ঘুরে বাজারে খুচরা ক্রেতা কিনছে ২০ থেকে ৩০ টাকা। ফলে সহজেই অনুমেয় মূল মুনাফা চলে যাচ্ছে মধ্যস্বত্ব ভোগীদের হাতে।

ন্যায্য দাম না পাওয়ায় মৃৎশিল্পীরা এ পেশার প্রতি হতাশ পূর্ব-পুরুষদের এ পেশা ধরে রেখেছেন। কিন্তু বর্তমানে করোনা ভাইরাসের কারনে সম্পুর্নরুপে বন্ধ হয়ে গেছে এ মাটির কাজ। তাই এই কাজ বন্ধ হয়ে যাওয়ায় অনকেই হতাশা হয়ে পড়েছে। এক সময় উপজেলার এসব গ্রামসহ আশেপাশের বিভিন্ন এলাকার পরিবারও প্রত্যক্ষভাবে এ শিল্পের সাথে জড়িত ছিল। হাড়ি, পাতিল, কলসি, ব্যাংক, পিঠা তরির ছাঁচ, পুতুলসহ ছোট-ছোট খেলনা ইত্যাদি সব জিনিসপত্র তৈরি করতে। এখানকার তৈরি মৃৎশিল্পর অনেক সুনাম ও সুখ্যাতি থাকলেও এখন শুধুমাত্র দধির পাত্র ও পিঠার খালা তৈরি করে কোন রকমে জীবিকা নির্বাহ করে আসছে। এ অঞ্চল খালা পাত্রের কদর বেশী রয়েছে। একটি খালা তৈরিতে মাটি ও পোড়ানো বাবদ প্রায় ৫ টাকা খরচ হলেও তা বাজারে বিক্রি হয় ১০ টাকা। এর মধ্যই রয়েছে শ্রম ও মাল বহনের খরচ। ফলে লাভের মুখ তারা দেখে না। অথচ ঐ একটি খালা এক হাতে ঘুরে বাজারে খুচরা ক্রেতা কিনছে ২০ থেকে ৩০ টাকা। ফলে সহজেই অনুমেয় মূল মুনাফা চলে যাচ্ছে মধ্যস্বত্ব ভোগীদের হাতে।

ন্যায্য দাম না পাওয়ায় মৃৎশিল্পীরা এ পেশার প্রতি হতাশ। ফলে স্বাভাবিকভাবেই বর্তমান প্রজন্ম এ ঐতিহ্যবাহী মৃৎশিল্পের প্রতি আগ্রহ হারাচ্ছে। মৃৎশিল্পের নিপুণ কারিগররা তাদের পরিবার পরিজন নিয়ে এখন অনেকটা অসহায় ও মানবেতর জীবন যাপন করছে। অনেক পুরুষ এ পেশা ছেড়ে বিভিন্ন পেশায় চলে গেছেন। মাটির তৈরি জিনিসপত্র আগের মত দামে বিক্রি করতে পারছে না। মাটির এ সকল পাত্রের চাহিদাও আগের মত নেই। নন্দমালী  গ্রামের মৃৎশিল্পের কারিগর বাবু কুমার পাল বলেন, ‘লাভ লসের হিসাব করি না। বাপ-দাদার কাজ ছাড়ি কি করে। করোনার আমাদের সকল কাজ বন্ধ হয়ে গেছে।

আমরা এখন অসহায় জীবন যাপন করছি। তিনি আরো বলেন, ‘পূর্বপুরুষের পেশা বাঁচিয়ে রাখতে গিয়ে করোনায় দ্রব্যমূল্যের উর্ধগতির বাজার পরিবার পরিজন নিয়ে খুব কষ্টে দিন কাটছে আমাদের। এ ব্যাপারে উপজেলার ভবানীপুর পালপাড়া গ্রামের মৃৎশিল্পী শ্রী ধিরেদ্রনাথ পাল বলেন, জলবায়ু পরিবর্তনের ফলে নদী-খাল ভরাট হয়ে যাওয়ায় এখন মাটি সংগ্রহ করতে অনেক খরচ হয় । এ ছাড়াও জ্বালানির মূল্য বেড়ে যাওয়ায় উৎপাদন ও বিক্রির সঙ্গে মিল না থাকায় প্রতিনিয়ত লোকসান গুনতে হয় । তার মধ্যে আবার করোনার প্রভাব পড়েছে এখন কাজ কর্ম সব বন্ধ আমরা এখন অসহায় হয়ে পড়ছি।

এক কালের ঐতিহ্যেরু মাটির তরি বাসন, হাড়ি, পাতিল, কলুসি, ব্যাংক, পিঠা তরির ছাঁচ, পুতুল এখন প্যাস্টিকের দখলে। ফলে উপজেলার শত বছরের ঐতিহ্যবাহী মৃৎশিল্পের জৌলুস আর নেই। সরকারী পৃষ্ঠপোষকতার অভাবে এ শিল্প হারিয়ে যেতে বসেছে। ঐতিহ্যের কারণেই মৃৎশিল্পকে টিকিয়ে রাখা দরকার বলে মনে করেন উপজেলার সচেতন মহল।

কাজিপুরে নাটুয়ারপাড়া রক্ষার স্বপ্নের বাঁধের তীব্র ভাঙন, জিও ব্যাগ ফেলা নিয়ে দুর্নীতির অভিযোগ

কাজিপুরে নাটুয়ারপাড়া রক্ষার স্বপ্নের বাঁধের তীব্র ভাঙন, জিও ব্যাগ ফেলা নিয়ে দুর্নীতির অভিযোগ




মাসুদ রানা সিরাজগঞ্জ জেলাপ্রতিনিধিঃ
সিরাজগঞ্জের কাজিপুর উপজেলার নাটুয়ারপাড়া ইউনিয়নের বিলসুন্দর গ্রামের কাশবন বেষ্টিত চর থেকে শতাধিক জিও ব্যাগ উদ্ধার করা হয়েছে। উদ্ধারকৃত জিও ব্যাগ গুলো নাটুয়ারপাড়া নদী রক্ষা বাঁধে ভাঙন রোধে ফেলার জন্য আনা হয়েছিল। ২ রা জুন মঙ্গলবার সকাল ১০ টায় বিলসুন্দর গ্রামে কয়েকজন কৃষক ঘাস কাটতে গিয়ে একটি গর্ত মাটি ভরাট দেখলে সন্দেহের সৃষ্টি হলে স্হানীয় গ্রাম পুলিশকে জানায়।খবর পেয়ে গ্রাম পুলিশের পক্ষে লিটন,সোবাহান,হবিবর ও আবু কালাম সহ ৪ নং ওয়ার্ডের মতি মেম্বর,৬ নং ওয়ার্ডের আব্দুল মান্নান মেম্বর ও ৭ নং ওয়ার্ডের ফজলুল মেম্বর এর সহযোগিতায় প্রায় শতাধিক জিও ব্যাগ উদ্ধার করা হয়।বিষয়টি নিয়ে পুরো এলাকায় চাঞ্চল্যকর পরিস্হিতির তৈরী হয়েছে।এলাকাবাসীর দাবি নাটুয়ারপাড়ার জনগণের অস্তিত্ব টিকিয়ে রাখার জন্য স্বপ্নের বাঁধের জন্য আনা জিও ব্যাগ যারা আত্নসাৎ করতে চায় তাঁরা যেনো কোন ভাবে ছাড় না পায়।স্হানীয় সূত্রে জানা যায় রিজভী কন্সট্রাকসন এর রিজভী মন্ডল কাজের দায়িত্বে আছে এ বিষয়ে তাঁর সাথে কোন যোগাযোগ করা সম্ভব হয় নি।বস্তা চুরির ব্যাপারে নাটুয়ারপাড়া ইউপি চেয়ারম্যান আব্দুল মান্নান চাঁন বিএসসি বলেন- চরে ঘাস কাটতে আসা কৃষকদের কাছে খবর পেয়ে ইউপি সদস্য ও গ্রাম পুলিশকে পাঠিয়ে দেই,তাঁরপর মাটিতে করা গর্ত থেকে প্রায় শতাধিক বস্তা উদ্ধার করা হয়।বিষযটি নিয়ে কি সিদ্ধান্ত আসে তা এ পর্যন্ত জানা যায়নি।

নীলফামারীতে নতুন করে আরও ১৭ জন করোনা ভাইরাসে আক্রান্ত

নীলফামারীতে নতুন করে আরও ১৭ জন করোনা ভাইরাসে আক্রান্ত




মোঃ হাবিবুর রহমান শাকিল নীলফামারী প্রতিনিধি:  

নীলফামারী জেলায় নতুন করে আরও ১৭ জনের শরীরে করোনা ভাইরাস শনাক্ত হয়েছে। সোমবার (১জুন) রাতে জেলা স্বাস্থ্য বিভাগ সুত্রে এ তথ্য নিশ্চিত হওয়া গেছে। এ নিয়ে জেলায় করোনা আক্রান্ত রোগীর সংখ্যা দাঁড়ালো ১৪৭ জন।
জেলা স্বাস্থ্যবিভাগ সূত্রে জানা গেছে, দিনাজপুরের এম আব্দুর রহিম মেডিকেল কলেজের পিসিআর ল্যাবের পরীক্ষাগারে নমুনা পরিক্ষার রিপোর্টে জেলায় নতুন করে আরও ১৭ জনের শরীরে করোনা ভাইরাস আক্রান্তের তথ্য এসেছে।
নতুন করে ১৭ জন আক্রান্তদের মধ্যে জেলার জলঢাকা উপজেলায় ৭ জন, সৈয়দপুর উপজেলায় ৫ জন,ডোমার উপজেলায় ৪ জন ও কিশোরগঞ্জ উপজেলায় ১ জন রয়েছেন।
বিষয়টি নিশ্চিত করে নীলফামারী সিভিল সার্জন রনজিৎ কুমার বর্মন বলেন, এ পর্যন্ত জেলার ৬ উপজেলায় করোনা ভাইরাসে আক্রান্ত ১৪৭ রোগীর মধ্যে জেলা সদরে ৫৩, সৈয়দপুরে ২৩, ডোমারে ২৩, জলঢাকায় ২০, ডিমলায় ১৭,  কিশোরগঞ্জে ১১ জন রয়েছেন ।আক্রান্তদের মধ্যে ডোমার ও জলঢাকার দুই রোগী পলাতক রয়েছেন। মৃত্যু বরন করেছে এক নারী সহ তিনজন।সুস্থ্য হয়ে বাড়ি ফিরেছেন ৫১ জন।

মিরসরাইয়ের করেরহাটে বিএনপির ত্রাণ বিতরণ

মিরসরাইয়ের করেরহাটে বিএনপির ত্রাণ বিতরণ




মিরসরাই প্রতিনিধি
বিশ্বব্যাপি ছড়িয়ে পড়া মহামারী কারোনা ভাইরাসের প্রাদুর্ভাবে করেরহাট ইউনিয়নের অসহায়, অস্বচ্ছল, ও কর্মহীন খেটে খাওয়া মানুষের মাঝে ঐক্যবদ্ধভাবে ত্রান বিতরন করেছে করেরহাট ইউনিয়ন বিএনপি।করেরহাট রাজকুমার কমিউনিটি সেন্টারে এই ত্রান বিতরন কর্মসুচীর উদ্বোধন করা হয়। 

ইউনিয়ন বিএনপির সভাপতি সিরাজুল হকের সভাপতিত্বে ও সাধারণ সম্পাদক বেলায়েত হোসেন সিরাজের সঞ্চালনায় ত্রান কার্যক্রমের উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে উপস্থিত ছিলেন করের হাট ইউনিয়ন বিএনপি র সাবেক সভাপতি আবুল কাশেম মেম্বার,কামাল উদ্দিন,আলী নেওয়াজ চৌধুরী,সলিম উল্লাহ, জহির উদ্দিন বাবলু,দিদারুল আলম,আবুল হোসেন মিয়া, জাহাঙ্গীর আলম,এয়াছিন মিজান,আবদুল খালেক সহ সকল ওয়ার্ড বিএনপি সভাপতি/ সম্পাদক সহ যুবদল ও ছাত্রদল নেতৃবৃন্দ।

 ত্রান বিতরন কার্যক্রমের প্রধান সমন্বয়ক রেজাউল করিম নোমান জানান, দেশনেত্রী খালেদা জিয়া ও দেশনায়ক তারেক রহমানের নির্দশে পরিচালিত ত্রান কার্যক্রমে সামাজিক দুরত্ব নিশ্চিতকল্পে আমরা প্রতিটা ওয়ার্ডের সভাপতি / সম্পাদকের মাধ্যমে আমরা অসহায় ও অস্বচ্ছল পরিবারের মাঝে ঘরে ঘরে ত্রান পৌছে দিয়েছি। করেরহাট ইউনিয়ন বিএনপি ঐক্যবদ্ধ ত্রান কার্যক্রমে উপজেলা বিএনপির আহবায়ক নুরুল আমিন,সাবেক উপজেলা চেয়ারম্যান নুরুল আমিন,উপজেলা বিএনপির যুগ্ম আহবায়ক শাহীদুল ইসলাম চৌধুরী ও সদস্য সচিব সালাউদ্দিন চেয়ারম্যােন সার্বিক দিকনির্দেশনা দেন।

তিনি বলেন, অতীতের মতো সকল দুর্যোগে বাংলাদেশ জাতীয়তাবাদী দল বিএনপি জনগনের পাশে থাকবে।তিনি ত্রান কার্যক্রমে আর্থিক ও দিকনির্দেশনা দিয়ে সহায়তাকারী দেশ ও প্রবাসের সকল মানবিক ভাইয়ের প্রতি কৃতজ্ঞতা প্রকাশ করেন।


করোনা উপসর্গ নিয়ে চট্টগ্রামের প্রবীণ আইনজীবী কবির চৌধুরীর মৃত্যু

করোনা উপসর্গ নিয়ে চট্টগ্রামের প্রবীণ আইনজীবী কবির চৌধুরীর মৃত্যু



মোঃ আরিফুল ইসলাম 
চট্টগ্রাম,প্রতিনিধি।
করোনা উপসর্গ নিয়ে মারা গেছেন বাংলাদেশ বার কাউন্সিলের সাবেক  সদস্য ও চট্টগ্রাম জেলা আইনজীবী সমিতির সাবেক সভাপতি প্রবীণ আইনজীবী ও রাজনীতিবিদ এডভোকেট মোহাম্মদ কবির চৌধুরী (৮৬)। মঙ্গলবার বেলা ১১ টায় চট্টগ্রাম জেনারেল হাসপাতালের আইসিইউতে ইন্তেকাল করেন তিনি। জেনারেল হাসপাতালের মেডিসিন বিভাগের সিনিয়র কনসালটেন্ট ডাক্তার আব্দুর রব বলেন, তিনি আইসিইউতে মারা গেছেন। হার্টের সমস্যা এবং সেই সাথে করোনা উপসর্গ নিয়ে ৩০ মে হাসপাতালে ভর্তি হন তিনি। প্রবীণ এ আইনজীবী জাতীয়তাবাদী  আইনজীবী  ফোরামের সভাপতি ছিলেন।১৯৯১ সালে তিনি চট্টগ্রামের আনোয়ারা আসনে বিএনপির মনোনয়ন পেয়ে নির্বাচনে অংশ নেন।

বাস ভাড়া ৬০% বৃদ্ধির প্রতিবাদে দিনাজপুরে মানববন্ধন ও বিক্ষোভ সমাবেশ করেছে গনতান্ত্রিক বাম জোট

বাস ভাড়া ৬০% বৃদ্ধির প্রতিবাদে দিনাজপুরে   মানববন্ধন ও বিক্ষোভ সমাবেশ  করেছে গনতান্ত্রিক বাম জোট




দিনাজপুর প্রতিনিধি :করোনা মহামারীর ভয়াবহ এই দু:সময়ে দেশে যাত্রী পরিবহনে বাসের ভাড়া ৬০% বৃদ্ধির প্রতিবাদে মানববন্ধন ও বিক্ষোভ সমাবেশ করেছে গনতান্ত্রিক বাম জোট দিনাজপুর জেলা শাখার নেতাকর্মীরা।
আজ মঙ্গলবার সকালে দিনাজপুর প্রেসক্লাবের সন্মুখ সড়কে গনতান্ত্রিক বাম জোট দিনাজপুর জেলা শাখার আয়োজনে ঘন্টাব্যাপী মানববন্ধন কর্মসুচী পালন করেছে সংগঠনের নেতাকর্মী ও সর্মথকরা। মানববন্ধন চলাকালে বক্তারা বলেন,বিশ্বের প্রত্যেকটি দেশের জনগনের সুবিধার্থে সেখান সরকার যাতায়াত ব্যবস্থা থেকে শুরু করে সর্বক্ষেত্রে জনগনের সুবিধা নিশ্চিত করেছে। 
তারা বলেন, ফ্রি করে দিয়েছে সড়ক-রেল ও বিমান যাতায়াতের ভাড়া অথচ র্দূভাগ্য আমাদের দেশের জনগনের যাদের উপর সরকার চাপিয়ে দিয়েছে ৬০% যাত্রী পরিবহন ভাড়া। মানববন্ধনে বক্তারা বলেন, আমরা অবিলম্বে বাসের এই ভাড়া বৃদ্ধির প্রজ্ঞাপন বাতিলের দাবী জানাচ্ছি। সরকার হটকারী সিদ্ধান্তের মাধ্যমে লক ডাউন প্রত্যাহার করে জনগনকে জীবন-মৃত্যুর সন্ধীক্ষনে দাঁড় করিয়েছে,আজ মানুষ চরম বিপদের মুখোমুখি হয়ে পড়েছে। সরকারের প্রতি আমরা আহবান জানাচ্ছি দেশের অসহায় মানুষকে বাঁচান,বাসভাড়া প্রত্যাহার করুন অন্যথায় জনগনকে সাথে কঠোর আন্দোলন গড়ে তোলা হবে।
এসময় মানববন্ধন ও সমাবেশে বক্তব্য রাখেন,ইউনাইটেড কমিউনিষ্টলীগের কেন্দ্রীয় কমিটির সা:সম্পাদক মোশাররফ হোসেন নান্নু,গনতান্ত্রিক বাম জোটের সম্বনয়ক মো: আনোয়ার আলী সরকার,সিপিবি দিনাজপুরের সভাপতি এ্যাড: মেহেরুল ইসলাম,সা:সম্পাদক বদিউজ্জামান বাদল,ইউনাটেড কমিউনিষ্টলীগের জেলা কমিটির সদস্য আখতার আজিজ ও বাসদ জেলা সংগঠক কিবরিয়া হোসেন প্রমুখ।

দিনাজপুরে বাংলাদেশ সাংবাদিক ফেডারেশনের সদস্যদের মাঝে ত্রাণ বিতরণ করলেন মনোরঞ্জন শীল গোপাল এমপি

দিনাজপুরে বাংলাদেশ সাংবাদিক ফেডারেশনের সদস্যদের মাঝে  ত্রাণ বিতরণ করলেন মনোরঞ্জন শীল গোপাল এমপি



দিনাজপুর প্রতিনিধি॥ “করোনা ভাইরাস থেকে সতর্ক থাকুন, সুস্থ্য থাকুন।” এই শ্লোগানকে সামনে রেখে ২ জুন মঙ্গলবার বাংলাদেশ সাংবাদিক ফেডারেশন দিনাজপুর জেলা শাখার সদস্যদের মাঝে ত্রাণ বিতরণ করলেন দিনাজপুর ১ আসনের সংসদ সদস্য মনোরঞ্জন শীল গোপাল। এ সময় বিশেষ অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন বিশিষ্ট সমাজসেবক ও রোলেক্স বিরিয়ানি হাউসের সত্বাধিকারী মোঃ শফিউল্লাহ খান শুক্লা। ফেডারেশনের পক্ষথেকে শুভেচ্ছা বক্তব্য রাখেন দিনাজপুর জেলা শাখার আহবায়ক ও দৈনিক বাংলা সময়ের জেলা প্রতিনিধি যাদব চন্দ্র রায়। সংসদ সদস্য মনোরঞ্জন শীল গোপাল বলেন সাংবাদিকরা সমাজের দর্পণ। সারা বিশ্বে যখন করোনা ভাইরাস নিয়ে প্রতিরোধ ও প্রতিকারের জন্য যুদ্ধ করছে মানুষ ঠিক তখনই সাংবাদিকরা জীবনের ঝুঁকি নিয়ে করোনা ভাইরাসের সংবাদ পাঠকদের কাছে পৌঁছাচ্ছে। সে কারণেই সাংবাদিকদের মূল্যায়ন করা আমাদের নৈতিক কর্তব্য।

মোংলায় সাংবাদিকদের পিপিই প্রদান করলেন আলহাজ্ব শেখ কামরুজ্জামান জসিম

মোংলায় সাংবাদিকদের পিপিই প্রদান করলেন আলহাজ্ব শেখ কামরুজ্জামান জসিম




মোঃএরশাদ হোসেন রনি, মোংলা 
মোংলায় সাংবাদিকদের মাঝে পিপিই প্রদান করেন মোংলা পৌর আওয়ামীলীগ এর সাধারন সম্পাদক আলহাজ্ব শেখ কামরুজ্জামান জসিম।

মঙ্গলবার সকালে মোংলা প্রেস ক্লাব অডিটোরিয়াম এ তিনি পিপিই প্রদান অনুষ্ঠান পরিচালনা করেন।

 এ সময় আলহাজ্ব শেখ কামরুজ্জামান জসিম বলেন  সাংবাদিকরা করোনার সময় জীবনের ঝুকি নিয়ে সংবাদ সংগ্রহ করেন।তাদের করোনার হাত থেকে বাচানোর উদ্দেশ্যই আমার এ পি পি ই প্রদান। 

এ সময় আরো উপস্থিত ছিলেন মোংলা প্রেস ক্লাব এর সভাপতি এইচ এম দুলাল।সাধারণ সম্পাদক হাচান গাজী।বাপা জেলা কমিটির আহবায়ক ও সিনিয়র সাংবাদিক নুর আলম।মনিরুল হায়দার ইকবা, সাবেক সভাপতি মোংলা প্রেস ক্লাব,আহসান হাবিব, সাবেক সভাপতি মোংলা প্রেস ক্লাব সহ প্রমূখ।

দিনাজপুরে নতুন আরও ৪ জন করোনা আক্রান্ত

দিনাজপুরে নতুন আরও ৪ জন করোনা আক্রান্ত




দিনাজপুর প্রতিনিধি : নতুন আরও ৪ জন করোনা (কোভিড-১৯) পজিটিভসস দিনাজপুর জেলায় মোট আক্রান্তের সংখ্যা দাঁড়িয়েছে ২৩১ জন।  এ নিয়ে দিনাজপুর জেলায় (কোভিড-১৯) পজিটিভ সংখ্যা সর্বমোট পূর্বে ২২৭+৪ (বর্তমানে) =২৩১ জন এর মধ্যে ১৬৯ জন পুরুষ ও ৫২ জন মহিলা এবং ১০ জন শিশু।
গত সোমবার রাত ৮ টায় সিভিল সাজর্ন মোঃ আব্দুল কুদ্দুছ জানান, ৪ জনের মধ্যে বিরল উপজেলায় ২ জন মহিলাদ্বয়ের বয়স ১৭ ও ২৩ আর ১ জন পুরুষ (২০) এবং ফুলবাড়ী উপজেলায় ১জন মহিলা (৩৩) করোনায় আক্রান্ত হয়েছে। আক্রান্তদের সকলে হোম আইসোলেশনে রয়েছেন। বর্তমানে ১৪৬ জন হোম আইসোলেশনে এবং ২২ জন প্রাতিষ্ঠানিক আইসোলেশনে ও হাসপাতালে ভর্তি ১০ জন রয়েছে। গত ২৪ ঘন্টায় দিনাজপুর এম আব্দুর রহিম মেডিকেল কলেজের ল্যাবরেটরীতে প্রেরিত নমুনা ১০৩ টি পাঠানো হয়েছে।
দিনাজপুর এম আব্দুর রহিম মেডিকেল কলেজের ল্যাব থেকে ৫৪ জনের নমুনার ফলাফলের মধ্যে ৪ জনের করোনা (কোভিড-১৯) পজিটিভ এসেছে এবং ২টি ফলোআপ পজিটিভ আর বাকী ৪৮টির ফলাফল নেগেটিভ। অদ্যাবধি ল্যাবটেরিতে প্রেরিত নমুনার সংখ্যা ৩৫১২ টি আর অদ্যবধি ফলাফল এসেছে ৩৩৮৫ টি নমুনার।
২৩১ জন করোনা ভাইরাস আক্রান্ত রোগীর মধ্যে দিনাজপুর সদর-৫৫ জন, কাহারোল-১৩ জন, বোঁচাগঞ্জ-৯ জন, ফুলবাড়ী-৮ জন, পার্বতীপুর-১৪ জন, নবাবগঞ্জ-২১ জন, ঘোড়াঘাট-২৬ জন, হাকিমপুর-৪ জন, চিরিরবন্দর-১২ জন, বিরল-২৯ জন, বিরামপুর-২১ জন, বীরগঞ্জ-১১ জন ও খানাসামা-৮ জন) মোট ১৩টি উপজেলায়। বর্তমানে মোট ৫২ জন সুস্থ হয়েছেন তার মধ্যে সদরে-১৩ জন, ফুলবাড়ী-১ জন, নবাবগঞ্জ-৫ জন, পার্বতীপুরে-৩ জন, কাহারোল-৭ জন, হাকিমপুর-২ জন, বোঁচাগঞ্জে-৫ জন, ঘোড়াঘাট-২ জন, বিরামপুর-৩ জন, বিরল-৩ জন, চিরিরবন্দর-১ জন এবং বীরগঞ্জ-৭ জন। মৃত্যু বরন করেছেন ১ জন। গত ২৪ ঘন্টায় নতুন করে দিনাজপুর জেলায় ৭৩ জন হোম কোয়ারেন্টাইন গ্রহন করেছে। বর্তমানে হোম কোয়ারেন্টাইনের এ আছেন ২২১৬ জন।
উল্লেখ্য, গতকাল দিনাজপুর আব্দুর রহিম মেডিকেল কলেজে চার জেলার সর্বমোট ১৮৮টি নমুনার ফলাফল হয়েছে তার মধ্যে ৩২টি পজিটিভ এবং ২টি ফলোআপ পজিটিভ বাকী ১৫৪ টি ফলাফল নেগেটিভ এসেছে।

পৌর পরিষদ থেকে পদত্যাগের মত কঠোর সিদ্ধান্ত নিতে বাধ্য হবো

পৌর পরিষদ থেকে পদত্যাগের মত কঠোর সিদ্ধান্ত নিতে বাধ্য হবো




প্রতিনিধি দিনাজপুর : করোনা মহামারী ভয়াবহ পরিস্থিতিতে দিনাজপুর পৌরসভার মেয়র সৈয়দ জাহাঙ্গীর আলম সবরকম কার্য্যক্রম বন্ধ রেখে একক কর্তৃত্ব চালাচ্ছে ও সমস্যায় জর্জরিত পৌরবাসীর মুখোমুখী দাঁড় করিয়েছে কাউন্সিলরদের অভিযোগ এনে পৌরসভার কাউন্সিলররা সংবাদ সম্মেলন করেছে।

আজ সকালে দিনাজপুর পৌরসভার কাউন্সিলর অডিটোরিয়ামে কাউন্সিলরদের আয়োজনে অনুষ্ঠিত সংবাদ সম্মেলনে লিখিত বক্তব্য পাঠ করেন প্যানেল মেয়র আবু তৈয়ব দুলাল। এসময় তিনি লিখিত বক্তব্যে বলেন করোনার এমন ভয়াবহ পরিস্থিতিতে বারং বার বলার পরেও পৌর মেয়র সৈয়দ জাহাঙ্গীর আলম কোন মিটিং ডাকেন না। এছাড়াও তিনি গত তিনমান যাবত পৌরসভার কোনো নিয়মিত মিটিং আহবান করেননি, যে কারনে পৌরবাসীর সমস্যা এবং সম্ভবনা নিয়ে কোন ব্যবস্থা গ্রহন করা সম্ভব হয়নি।

কাউন্সিলররা ব্যক্তিগত উদ্দ্যোগে করোনা সমস্যায় জর্জরিত মানুষের জন্যে নিজেদের ২ মাসের সন্মানী ভাতা এবং তিন মাসের সাহায্যোর অনুদানের সমুদয় অর্থ দিয়ে ( পৌর মেয়র সৈয়দ জাহাঙ্গীর আলমের সহযোগীতা ছাড়াই) ৮০ টন চাউল ক্রয় করে লক ডাউনের আওতায় ক্ষতিগ্রস্থ দিনাজপুরের বিভিন্ন শ্রেনী-পেশার অসহায় মানুষদের মাঝে বিতরণ করেছেন তারা। এসময় পৌর মেয়রের কাছে এব্যাপারে আর্থিক সহায়তা চাইলে তিনি সাহায্য করতে একটি টাকাও দেবেন না বলে সাফ জানিয়ে দেন।

অথচ পৌর মেয়র নিজে সরকারী প্রশাসনের বিভিন্ন ত্রাণ-অনুদান, বিভিন্ন ব্যবসায়ী ও বিত্তবান মানুষদের কাছে যে ত্রাণগুলো নিয়েছেন সেগুলো কথায় কি ভাবে বিতরণ করা হয়েছে তা পৌরবাসীর কাছে দৃশ্যমান নয়। এব্যাপারে কাউন্সিলরদের একদম পুরোপুরি অন্ধকারে রেখে মেয়র তার স্বী স্বার্থ হাসিল করেছেন।

তিনি লিখিত বক্তব্যে অভিযোগ করেন পৌরসভায় চলামান এডিবি‘র সকল কার্য্যক্রম বন্ধ রেখেছেন এবং বিভিন্ন টেন্ডারের কার্য্যক্রম অনিয়মের মাধ্যমে সম্পাদন করেছেন পৌর মেয়র সৈয়দ জাহাঙ্গীর আলম। 

সংবাদ সম্মেলনে উপস্থিত কাউন্সিলরা বলেন পৌর মেয়র সৈয়দ জাহাঙ্গীর আলম তার সস্তা ভালোবাসা দেখিয়ে পৌরবাসীকে ধ্বংসের দ্বারপ্্রান্তে পৌছে দিয়েছেন। 

লিখিত বক্তব্যে বলা হয়, পৌর মেয়র সর্বক্ষেত্রে নিজের ব্যর্থতাকে ঢাকতে  মিথ্যার আশ্রয় নিয়ে মিথ্যা তথ্য তুলে ধরে প্রশাসন এবং এলাকাভিত্তিক জনগনের কাছে কাউন্সিলরদের বিভিন্ন প্রশ্নের সন্মুখিন করেছেন। উপস্থিত কাউন্সিলররা সাংবাদিকদের প্রশ্নের জবাবে জানান আগামীতে যদি পৌরমেয়র এভাবেই কার্য্যক্রম চালাতে থাকে তাহলে আমরা আন্দোলনসহ পৌর পরিষদ থেকে পদত্যাগের মত কঠোর সিদ্ধান্ত নিতে বাধ্য হবো।

সংবাদ সম্মেলনে উপস্থিত ছিলেন কাউন্সিলর মোস্তফা কামাল মুক্তি বাবু,রেহাতুল ইসলাম খোকা,রোকেয়া বেগম লাইজু, মোস্তাফিজুর রহমান মাসুদ, মাসুদুল ইসলাম মাসুদ, আশরাফুল আলম রমজান,মাসতুরা বেগম পুতুল,কাজী আকবর হোসেন অরেঞ্জ,সানোয়ার হোসেন,মাকসুদা পারভিন মিনা ও জাহাঙ্গীর আলম।

সোহেলের স্বপ্ন পূরণের সহযাত্রী নুপুর আক্তার

সোহেলের স্বপ্ন পূরণের সহযাত্রী নুপুর আক্তার





মোঃ হাবিবুর রহমান শাকিল নীলফামারী প্রতিনিধি:



লালমনিরহাটের হাতীবান্ধা উপজেলার সিঙ্গিমারী ইউনিয়নের উত্তর ধুবনী গ্রামের তাঁতী ঠান্ডু মিয়ার দ্বিতীয় ছেলে সোহেল রানা। সে এবার হাতীবান্ধা এসএস সরকারি হাইস্কুল অ্যান্ড কলেজ থেকে ভোকেশনাল শাখায় এসএসসি পরীক্ষার ফলাফলে গোল্ডেন ‘এ’ প্লাস পেয়েছে।

বাবার সাথে তাঁতের কাজ করে গোল্ডেন ‘এ’ প্লাস পাওয়া সোহেল রানা লেখাপড়া করে ইঞ্জিনিয়ার হতে চায়। কিন্তু তার সেই স্বপ্নে বাধা হয়ে দাঁড়িয়েছে দারিদ্রতা। ফলাফল প্রকাশের পর সোহেল রানার এখন ঘুম কেড়ে নিয়েছে সেই প্রশ্ন, গোল্ডেন ‘এ’ প্লাস পেয়ে লাভ কি ? কলেজে ভর্তি হতে পাবো কি?


অভাব আর অনটনের মাঝেই শুরু হয় সোহেল রানার লেখাপড়া। সোহেল রানা লেখাপড়ার পাশাপাশি তার বাবাকে তাঁতের কাজে সহযোগিতাও করেন। সেই সোহেল এবারে এসএসসি পরীক্ষার ফলাফলে ভোকেশনাল শাখা থেকে গোল্ডেন ‘এ’ প্লাস পেয়েছে । সোহেল রানা পিইসি ও জেএসসিতেও গোল্ডেন ‘এ’ প্লাস পেয়েছে। এখন সে স্বপ্ন দেখছেন উচ্চ শিক্ষায় শিক্ষিত হয়ে ইঞ্জিনিয়ার হওয়ার। কিন্তু ওই স্বপ্ন দারিদ্রতার কাছে আটকে যাবে না তো।


 
সোহেল রানা বলেন, আমি তো পিইসি, জেএসসি ও এসএসসিতে গোল্ডেন ‘এ’ প্লাস পেয়েছি। আমি এইচএসসিতেও গোল্ডেন ‘এ’ প্লাস পেতে চাই। কিন্তু আমাকে আমার বাবা কলেজে ভর্তি করে দিতে পাবে তো? ভর্তি করে দিলেও আমার বাবার পক্ষে আমার লেখাপড়ার খরচ যোগাড় করা সম্ভব নয়। তাহলে দারিদ্রতার কাছে আমি কি হেরে যাবো? গোল্ডেন ‘এ’ প্লাস পেয়ে লাভ কি? কলেজে ভর্তি হতে পাবো কি?

#মানবকন্ঠ নিউজে প্রকাশিত এমন একটি নিউজ দেখে সোহেলের স্বপ্ন পূরনের সহযাত্রী হয়ে পথ চলতে চায় ডিমলা উপজেলার  অন্যতম একজন সেচ্ছাসেবী নুপুর আক্তার

পরিবার বলতে মা ও বোন ছারা কেউ নেই তার বাবার মৃত্যু হয় ৬ বছর আগেই, সে নিজেও একজন নিম্নবিত্ত পরিবারের মেয়ে কিন্তু মানবতার কল্যাণে এগিয়ে আসতে না পারলে যে সে শান্তিতে ঘুমাতে পারেনা...

ইতিমধ্যে তার অনেক কাজে মুগ্ধ সাধারন মানুষ, মানুষকে ভালবাসতে সে নিজের জীবনের সবটুকু দিতে পারে, বিভিন্ন মানবতার কাজে থাকায় অনেকেই ভালবেসে তাকে ২য় বেগম রোকেয়া বলে ডাকে....

নুপুর আক্তার জানায়,
আমি বিশ্বাস করি সোহেল ও আমার এই যাত্রায় অনেকেই আমাদের সাথে থাকবে, আমি ভয় পাচ্ছি না আর কোন পিছু হাটব না ইনশাআল্লাহ, আমি সকলের সহযোগীতায় সোহেলকে একটি ভাল প্লাটফর্ম উপহার দিতে চাই মাত্র.... আমাদের জন্য দোয়া করবেন।

চাঁপাইনবাবগঞ্জে তিনটি কুরিয়ার সার্ভিসকে আম মৌসুম পরিচালনার অনুমতি প্রদান

চাঁপাইনবাবগঞ্জে তিনটি কুরিয়ার সার্ভিসকে আম মৌসুম পরিচালনার অনুমতি প্রদান




শামিম উদ্দিন চাঁপাইনবাবগঞ্জ প্রতিনিধি :

চাঁপাইনবাবগঞ্জে সোমবার বেলা ১২ টার দিকে জেলা প্রশাসনের সম্মেলন কক্ষে কুরিয়ার সার্ভিস পরিচালকদের সাথে এক আলোচনা সভা অনুষ্ঠিত হয়েছে। করোনা পরিস্থিতিতে আম মৌসুমে যথাযত নিয়মে কুরিয়ার সার্ভিসের মাধ্যমে দেশের বিভিন্নপ্রান্তে আম পাঠানোর লক্ষ্যেই এ সভা অনুষ্ঠিত হয়।

সভায় জেলা প্রশাসন তিনটি কুরিয়ার সার্ভিসকে কার্যক্রম পরিচালনার অনুমতি দেয়। এ জে আর পার্সেল এন্ড কুরিয়ার, ইউএসবি এক্সপ্রেস কুরিয়ার ও জে এইচ পার্সেল কুরিয়ার সার্ভিসকে অনুমতি দেয়া হয়। এ ছাড়া সুন্দরবন কুরিয়ার সার্ভিস, এস এ পরিবহনসহ অন্যদের হালনাগাদ কাগজপত্র না জমা দেয়া পর্যন্ত কার্যক্রম স্থগিত রাখার জন্য নির্দেশনা দেন জেলা প্রশাসন।

সভা থেকে জানা গেছে, করোনা পরিস্থিতিতে জেলা থেকে কুরিয়ার সার্ভিস পরিচালনার জন্য আগেই বিভিন্ন কাগজপত্র জমা দিতে বলেছিল জেলা প্রশাসন। সভায়
সকল কুরিয়ার সার্ভিসের প্রতিনিধিদের উপস্থিতিতে কুরিয়ার পরিচালনার জন্য যে সকল কাগজপত্র বা অনুমতি পত্র প্রয়োজন তা উপস্থাপন করা হয়।

পরে কাগজপত্র পর্যবেক্ষণ করে চাঁপাইনবাবগঞ্জ থেকে পরিচালিত অভ্যন্তরীণ তিনটি কুরিয়ার ব্যতীত অন্যান্য সকল কুরিয়ারের হালনাগাদ কোন অনুমতি পত্র না থাকায় সুন্দরবন কুরিয়ার সার্ভিস, এস এ পরিবহনসহ অন্যান্যদের উপর তীব্র ক্ষোভ প্রকাশ করেন ও প্রশাসনিক ব্যবস্থা নেয়ার জন্য যথাযথ কর্তৃপক্ষকে নির্দেশ প্রদান করবেন বলে জানান।

আলোচনা সভায়, অতিরিক্ত জেলা প্রশাসক এ,কে,এম তাজকির-উজ-জামানসহ অভ্যন্তরীণ কুরিয়ার সার্ভিস প্রতিনিধিসহ অন্যরা উপস্থিত ছিলেন।

সভায় করোনা পরিস্থিতিতে কীভাবে আম পরিবহন করতে হবে সে বিষয়ে দিক নির্দেশনা প্রদান করা হয়। এ ছাড়াও পরিবহন খরচ নির্ধারণ করে দেয়া হয়। পরিবহন খরচের অতিরিক্ত কোন কুরিয়ার পরিবহন খরচ নিলে তার বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নেয়া হবে বলেও জেলা প্রশাসক জানান।

তিনি আরো জানান, ঢাকার জেলার জন্য ১০ টাকা এবং অন্যান্য জেলার জন্য পরিবহন খরচ ১৪ টাকা ধার্য করে সাময়িক অনুমতি প্রদান করা হলো। পরবর্তীতে এই পরিবহন খরচ আলোচনা সাপেক্ষ পুণঃনির্ধারণ করা হতে পারে বলেও তিনি জানান।
এ ছাড়াও আগের দিন জেলা প্রশাসক এ জেড এম নূরুল হক ব্যবসায়ী নেতৃবৃন্দের সাথে আলোচনা করে বিভিন্ন শর্তে মার্কেটসহ সবকিছু নিয়মের মধ্যে চালু করার উদ্যোগ গ্রহণ করেন।

বাবার ওপর অভিমান করে মাদ্রাসা ছাত্রীর আত্মহত্যা!

বাবার ওপর অভিমান করে মাদ্রাসা ছাত্রীর আত্মহত্যা!




শামিম উদ্দিন চাঁপাইনবাবগঞ্জ প্রতিনিধি :
নওগাঁর সাপাহারে টিভির রিমোট নিয়ে বাবার উপর অভিমান করে নুসরাত জাহান টুনি (১৩) নামে এক মাদ্রাসার ছাত্রী আত্মহত্যা করেছে।

এ ব্যাপারে ঘটনার সত্যতা নিশ্চিত করে সাপাহার থানার অফিসার ইনচার্জ (ওসি) আব্দুল হাই জানান, সোমবার রাত ৯ টা র দিকে উপজেলা সদরের জয়পুর গ্রামে নিজ বাড়িতে রিমোট হাতে নিয়ে টিভি দেখছিলেন টুনি।


 
এসময় তার বাবা রফিকুল ইসলাম টিভিতে কোরোনার খবর দেখার জন্য তার কাছ থেকে রিমোট চাইলে সে বাবার উপর অভিমান করে ঘর থেকে বাহিরে রান্না ঘরে গিয়ে গলায় ওড়না পেচিয়ে আত্মহত্যা করে।

পরে পরিবারের লোকজন জানতে পেরে থানায় খবর দেন। খবর পেয়ে সাপাহার থানা পুলিশের টিম ঘটনাস্থলে গিয়ে ঘটনার তথ্য উদঘাটন করে। এবং আরও জানতে পারে নুসরাত জাহান টুনি একটি মাদ্রাসার অষ্টম শ্রেনির ছাত্রী। সে বেশ কয়েক বছর ধরেই মানুসিক সমস্যায় ভুগছিলো। টুনি এর আগেও বেশ কয়েক বার গলায় ফাস লাগানোর চেষ্টা করেছিলো বলেও স্থানীয় সূত্রে জানাগেছে।
এরকম ঘটনার খবরে এলাকায় শোকের ছায়া নেমে আসে।

ইমামে আহলে সুন্নত আল্লামা নুরুল ইসলাম হাশেমীর মৃত্যু, চট্টগ্রামে শোকের ছায়া

ইমামে আহলে সুন্নত  আল্লামা  নুরুল ইসলাম হাশেমীর মৃত্যু, চট্টগ্রামে শোকের ছায়া




 চট্টগ্রাম, প্রতিনিধি
মোঃহাসান রিফাত


আল্লামা নুরুল ইসলাম হাশেমী(৯৩) চিকিৎসাধীন অবস্থায় ইন্তেকাল করেছেন। (ইন্না লিল্লাহি ওয়া ইন্না ইলাইহি রাজিউন)।  

আজ ভোর ৫ টায় আগ্রাবাদ মা ও শিশু হাসপাতালে আইসিইউতে তার মৃত্যু হয়। তার মৃত্যুতে চট্টগ্রামসহ দেশজুড়ে আলেম-ওলামাদের মধ্যে শোকের ছায়া নেমে এসেছে।

 

তার মৃত্যুতে পৃথক বিবৃতিতে গভীর শোক ও শ্রদ্ধা এবং শোকাহত স্বজনদের প্রতি সমবেদনা জানিয়েছেন চট্টগ্রাম সিটি মেয়র আ জ ম নাছির উদ্দিন, সাবেক মন্ত্রী আবদুল্লাহ আল নোমান, সাবেক মেয়র যথাক্রমে মাহমুদুল ইসলাম চৌধুরী, মীর মোহাম্মদ নাছির উদ্দিন, মনজুর আলম, চট্টগ্রাম মহানগর আওয়ামী লীগ সভাপতি মাহাতাব উদ্দিন চৌধুরী, চট্টগ্রাম নাগরিক উদ্যোগ আহ্বায়ক রিয়াজ হায়দার চৌধুরী ও সদস্য সচিব শেখ মুজিব আহমদসহ বিভিন্ন সংগঠনের নেতৃবৃন্দ।

মাধবপুরে স্বাস্থ্যবিধি মেনে গাড়ী চলাচল বিষয়ে শ্রমিকদের নিয়ে সীমিত আকারে সভা অনুষ্ঠিত হয়

মাধবপুরে স্বাস্থ্যবিধি মেনে গাড়ী চলাচল বিষয়ে শ্রমিকদের নিয়ে সীমিত আকারে সভা অনুষ্ঠিত হয়




লিটন পাঠান হবিগঞ্জ জেলা প্রতিনিধি

হবিগঞ্জের মাধবপুর থানাধীন 
বাস-ম্যাক্সি মাইক্রোবাস সিএনজিসহ সকল যানবাহনের শ্রমিকদের নিয়ে সীমিত আকারে সভা অনুষ্ঠিত হয়, 
সোমবার রাত সাড়ে ৯ টায়, এ সময় উপস্থিত ছিলেন, মাধবপুর থানার 

ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) ইকবাল হোসেন, ও মাধবপুর থানার সেকেন্ড 
অফিসার মোসলেহ উদ্দিন, এবং ঢাকা-সিলেট গাড়ীর পক্ষ থেকে ছিলেন মোঃ মাতু মিয়া, হবিগঞ্জ মটর মালিক সমিতির পক্ষ থেকে ছিলেন আঃ কুদ্দুস ও 

রফিকুল ইসলাম শামীম, ম্যাক্সি মালিক সমিতির পক্ষ থেকে ছিলেন লিটন পাঠান, বি-বাড়িয়া বাস মালিক সমিতির পক্ষ থেকে ছিলেন হাজী মোঃ গোলাপ
খাঁন, মাইক্রোবাস মালিক সমিতির সভাপতি শাহ সেলিম ছিলেন, সিএনজি 

অটোরিকশা সমিতির পক্ষ থেকে ছিলেন জর্জ মিয়া, উক্ত সভায় এ সময় মাধবপুর 
থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা ওসি ইকবাল হোসেন, বললেন করোনা ভাইরাস সংক্রান্ত চলমান পরিস্থিতিতে সরকারী নির্দেশনা মোতাবেক যথাযথ স্বাস্থ্যবিধি 

মেনে গাড়ী চলাচল করতে অনুরোধ জানান , তিনি আরও বলেন হবিগঞ্জ জেলাসহ দেশে সকল রুটে গাড়ী চলাচল শুরু হচ্ছে। মাধবপুর ট্রাফিক জোনের ইন্সপেক্টর ফারুক আল মামুন ভুইয়ার সাথে ফোনে যোগাযোগ করা হলে তিনি জানান, 

সরকারি নির্দেশনা মোতাবেক ও যথাযথ 
স্বাস্থ্য বিধি মেনে গাড়ী চলাচল অব্যাহত রাখতে হবে। অন্যথায় নিয়ম অমান্যকারী সংশ্লিষ্ট গাড়ী চলাচল বন্ধ করে দিয়ে গাড়ীটিকে আটক রেখে মালিকের 
বিরুদ্ধে প্রয়োজনীয় আইনানুগ ব্যবস্থা 

গ্রহণ করা হবে। মাধবপুর থানায় সীমিত আকারে অনুষ্ঠিত সভায়, ম্যাক্সি মালিক সমিতির পক্ষ থেকে লিটন পাঠান বলেন,
বাস-ম্যাক্সি চলাচলের ক্ষেত্রে সরকারি নির্দেশনা মোতাবেক ধারণ ক্ষমতার অর্ধেক যাত্রী গ্রহণ, বাস-ম্যাক্সি ভাড়ার 

ক্ষেত্রে নির্ধারিত ভাড়ার চেয়ে অতিরিক্ত,
৬০% ভাগের অতিরিক্ত ভাড়া গ্রহণ না করা, গাড়ী যাত্রার সময় গাড়ীতে জীবানুনাশক স্প্রে করা, যাত্রীদের মাস্ক ব্যবহার নিশ্চিত করা প্রতিটি যাত্রী
গাড়ীতে উঠার পূর্বেই হ্যান্ড,

স্যানিটাইজেশন করা এবং শরীরের তাপমাত্রা পরীক্ষার ব্যবস্থা নিশ্চিত করা। এছাড়া অসুস্থ ব্যক্তিদের গাড়ীতে না তোলা এবং পথে কোথাও। অতিরিক্ত যাত্রী না তোলার ব্যাপার সহ উল্লেখিত সকল নিয়ম কঠোর ভাবে মেনে চলার নির্দেশ দেয়া হয়।

ঝিকরগাছায় চলছে জমজমাট জুয়ার আসর

ঝিকরগাছায় চলছে জমজমাট জুয়ার আসর





স্টাফ  রিপোর্টারঃ যশোর জেলার ঝিকরগাছা উপজেলার গুলবাগপুর গ্রামে চলছে জমজমাট জুয়ার আসর। বিশস্ত সুত্রে জানা যায়  ঝিকরগাছা উপজেলার ১ নং গঙ্গানন্দপুর ইউনিয়নের ১ নং ওয়ার্ডের গুলবাগপুর গ্রামের উপজেলা পাড়ার মৃত আব্দুল মালেকের পুত্র মাহাবুর রহমান অরফে বড়ো খোকন এর তত্বাবধানে তার চায়ের দোকানে প্রতিদিন সন্ধার পর থেকে  গভীর  রাত পর্যন্ত চলে এ-ই জুয়ার আসর। জানা যায়  সন্ধার পর থেকে গুলবাগপুর, আটলিয়া সহ পার্শ্ববর্তী গ্রামের জুয়াড়িরা এসে তার দোকানে বসে এ-ই জুয়ার আসর বসাই এবং তার চলে গভীর রাত পর্যন্ত। 
নাম প্রকাশ না করার শর্তে প্রতিবেদকে জানান দেশের করোনা মোকাবেলায় সরকার যখন লকডাউনের ঘোষণা দেন তখনও তারা সরকারের আদেশ অমান্য করে এ-ই জুয়ার আসর পরিচালনা করে। প্রত্যক্ষদর্শীরান জানান  এ-ই আসরে বসে জুয়াড়িরা বিভিন্ন অশ্লীল ভাষায় কথাবার্তা ও হাসাহাসি করে যা সুশিল সমাজের জন্য চরম হুমকি। এমতাবস্থায় সচেতন মহল জুয়ার আসর বন্ধ করার লক্ষ্যে প্রশাসনের হস্তক্ষেপ কামনা করেছেন।