নাগরপুর আকাশে ঘুড়ির মেলা

নাগরপুর আকাশে ঘুড়ির মেলা



ডা.এম.এ.মান্নান,টাংগাইল জেলা প্রতিনিধি :
সারা দেশের মত টাঙ্গাইলের নাগরপুরেও চলছে ঘুড়ি উৎসব। বসন্তের শেষে গ্রীষ্মের শুরু থেকে শেষ পর্যন্ত দখিণা হাওয়ায় গ্রামের ঘুড়িপ্রেমীরা  বিকেল হলেই রঙিন ঘুড়ি নিয়ে চলে যেতো ফসলের ক্ষেতের পাশে ও বড় বড় মাঠে,ছাদে। এখন অফুরন্ত অবসরে শুরু হয়েছে আবারো সেই ঘুড়ি উৎসব। উপজেলার প্রতিটা ইউনিয়নে বিকেল থেকে রাত পর্যন্ত আকাশে ঘুড়ির মেলা বসেছে।
সময়ের বিবর্তনে গ্রামে এমনকি শহর থেকেও হারিয়ে গেছে সেই ঘুড়ি উৎসব। আধুনিকতা আর যান্ত্রিকতার ছোঁয়ায় গ্রামীণ যুবক-কিশোরদের মাঝে এখন আর দেখা মেলেনা আগেরকার সেই ঘুড়ি উৎসব। সারাদিন মোবাইল ফোনে নেট চালু করে গেম,ফেজবুক নিয়ে বিজি থাকা। এখন অনেক বছর পর ফিরে আসা করোনা নামক মহামারী থেকে বাঁচতে সরকারী নির্দেশনার কারণে অনেকটাই ঘরবন্দি সবাই। যুবক-কিশোরদের পাশাপাশি বয়স্করাও রয়েছে হোম কোয়ারেন্টাইনে। তাই যান্ত্রিক জীবনকে ছুটি দিয়ে গ্রীষ্মের বিকেলকে উপভোগ করতে ছোট-বড় সবাই ঘুড়ি নিয়ে ছুটে চলেছেন গ্রামীণ ফসলের মাঠ কিংবা খোলা আকাশে। করোনায় সামাজিক দূরত্ব বজায় রাখতে বন্ধু হিসেবে তারা বেছে নিয়েছে বিভিন্ন রঙ বেরঙের রঙয়ের ঘুড়ি। এই সুবাদে করোনা আতঙ্কেরে প্রতিটা বিকেল একটু হলেও আনন্দে পার করছেন গ্রামীণ ঐতিহ্য ঘুড়িপ্রেমীরা। ফলে ঘুড়ি বানানোর ধুম পড়েছে। আকাশে চোখ মেললেই ঘুড়ির লড়াইয়ের দৃশ্য!        

নাগরপুর উপজেলার সহবতপুরের ঘুড়িপ্রেমীক, বিশ্ববিদ্যালয়ের ছাত্র, মেধাবী ছাত্রনেতা মো.তোফায়েল আহম্মেদ বলেন, স্কুল কলেজ,বিশ্ববিদ্যালয় পড়ুয়াদের পড়াশোনার চাপ না থাকায় তারা বেশিরভাগই ঘুড়ি কিনে উড়িয়ে থাকে। গ্রামে ঘুড়ি তৈরিতে যুবকরা ব্যস্ত সময় পার করছে। তাদের কাছেই এখন মিলছে ঘুড়ি। সাধারণত যেকোনো ডিজাইনের একটি ঘুড়ির দাম ১০০ থেকে ২০০ টাকা পর্যন্ত।

ঘুড়ি বানানো কারিগর শুকুর আলী জানান, প্রতিদিন  প্রচুর পরিমাণে ঘুড়ি বিক্রি হচ্ছে। কারণ করোনাভাইরাসে সব স্কুল, কলেজ, প্রতিষ্ঠান বন্ধ থাকায় সবাই অলসতা হয়ে পড়ছে। তাই বিকেলে একটু আনন্দ পেতেই সবাই ঘুড়ি উড়াতে মেতে উঠছে। বাশঁ, বেত এবং বিভিন্ন রঙের প্লাস্টিক-কাগজের মোড়কে ঘুড়ি বানানো হয়। আবার কেউ ঘুড়িতে লাইট লাগিয়ে নিয়ে রাতের আকাশে উড়িয়ে থাকে। ঘুড়ি বিক্রি করে সংসারের জন্য কিছু আয় হচ্ছে বলেও জানান।

মাধবপুরে গাঁজাসহ পুলিশের হাতে আটক ১জন

মাধবপুরে গাঁজাসহ পুলিশের হাতে আটক ১জন





লিটন পাঠান হবিগঞ্জ জেলা প্রতিনিধি 

হবিগঞ্জের মাধবপুরে ১ মাদক চোরাকারবারি কে আটক করেছে পুলিশ। রোজ শুক্রবার (১২-জুন) সকাল ১২টার সময় মাধবপুরের কাশিমনগর পুলিশ ফাঁড়ির ইন্সপেক্টর মোরশেদ আলমের নেতৃত্বে পুলিশের একটি দল উপজেলার চেঙ্গার বাজার রেল ব্রিজ সংলগ্ন এলাকা থেকে আনুমানিক ১ কেজি ভারতীয় গাঁজাসহ ইসমাইল মিয়া নামের ১ চোরাকারবারিকে আটক করা হয়েছে।

আটককৃত চোরাকারবারি হলো বি- বাড়িয়া জেলার সরাইল উপজেলার জয়ধরকান্দি গ্রামের মুসা মিয়ার ছেলে মোহাম্মদ ইসমাইল মিয়া (২৮) পরে বিকালে চোরাকারবারি আটককৃত ইসমাইল মিয়াকে মাধবপুর উপজেলা 

সহকারী কমিশনার (ভূমি) এক্সিকিউটিভ ম্যাজিস্ট্রেট আয়েশা আক্তার ভ্রাম্যমান আদালতের মাধ্যমে ৩ মাসের কারাদণ্ড প্রদান করে জেলে পাঠান।

আইসোলেশন সেন্টার, দৃষ্টি প্রতিবন্ধী ও পরিচ্ছন্নকর্মীদের খাবার দিল রেড ক্রিসেন্ট চট্টগ্রাম

আইসোলেশন সেন্টার, দৃষ্টি প্রতিবন্ধী ও পরিচ্ছন্নকর্মীদের খাবার দিল রেড ক্রিসেন্ট চট্টগ্রাম




রিয়াজুল করিম রিজভী প্রতিনিধি চট্টগ্রামঃ-

করোনা পরিস্থিতিতে নিয়মিত মানুষের পাশে দাঁড়িয়ে মানবিক কার্যক্রম পরিচালনা করে যাচ্ছে রেড ক্রিসেন্ট চট্টগ্রাম। করোনা ভাইরাস প্রতিরোধে প্রথম থেকে মাঠে কাজ করে যাচ্ছে যুব স্বেচ্ছাসেবকরা। মানবিক সহায়তা কর্মসূচীর আওতায় বাংলাদেশ রেড ক্রিসেন্ট সোসাইটি চট্টগ্রাম সিটি ইউনিটের ব্যবস্থাপনায় যুব রেড ক্রিসেন্ট, চট্টগ্রামের বাস্তবায়নে জাতীয় সদর দপ্তরের সহযোগীতায় সামাজিক দূরত্ব বজায় রেখে নগরীর প্রায় সাতশ মানুষের মাঝে উপহার হিসেবে রান্না করা খাবার বিতরণ করা হয়। বাংলাদেশ রেড ক্রিসেন্ট সোসাইটির ম্যানেজিং বোর্ড সদস্য ও চট্টগ্রাম জেলা ইউনিটের ভাইস চেয়ারম্যান ডাঃ শেখ শফিউল আজম ও চট্টগ্রাম সিটি ইউনিটের ভাইস চেয়ারম্যান এম.এ.ছালাম এর তত্ত্বাবধাণে নগরীর প্রিন্স অব চিটাগং কোভিড ১৯ আইসোলেশন সেন্টার, সিটি হল কোভিড ১৯ আইসোলেশন সেন্টারে নিয়োজিত স্বাস্থ্যকর্মী ও স্বেচ্ছাসেবকদের কাজে অনুপ্রাণিত করার জন্য রান্না করা খাবার প্রেরণ করা হয়। চট্টগ্রাম সিটি ইউনিটের সেক্রেটারী আব্দুল জব্বারের পরিচালনায় চট্টগ্রাম মেডিকেল কলেজ হাসপাতাল, চট্টগ্রাম জেনারেল হাসপাতাল, জেমিসন রেড ক্রিসেন্ট মাতৃসদন হাসপাতালের ময়লা আর্বজনা পরিচ্ছন্নকাজে নিয়োজিত আয়া, সুইপার এবং নগরীর আন্দরকিল্লা, সাব- এরিয়া, দামপাড়া, চট্টেশ^রী রোড, কাতালগঞ্জ, প্রবর্তক, দুই নাম্বার গেইট এলাকায় ডাস্টবিন বুথে নিয়োজিত পরিচ্ছন্নকর্মীদের মাঝে এবং নগরীর পাথরঘাটাস্থ শেখ পাড়ায় দরিদ্র পরিবারের মাঝে খাবার বিতরণ করা হয়।
এছাড়াও যুব রেড ক্রিসেন্ট, চট্টগ্রামের যুব প্রধান মোঃ ইসমাইল হক চৌধুরী ফয়সাল এর নেতৃত্বে কোভিড আক্রান্ত ব্যক্তিদের দাফনে নিয়োজিত আল মানাহিল ওয়েলফেয়ার ফাউন্ডেশনের স্বেচ্ছাসেবক এবং মুর্দা সেবা সংগঠনের স্বেচ্ছাসেবকদের দুপুরের খাবার প্রেরণ করা হয় এবং বর্তমানে মাঠে কাজ করে যাওয়া সাংবাদিকদের সম্মান জানিয়ে ও পরিস্থিতিতে লকডাউনে থাকা পরিবার, দৃষ্টি প্রতিবন্ধীদের, নিম্ম আয়ের কর্মজীবী এবং নগরীর বিভিন্ন স্থানে খাবারের আশায় ঘুরে বেড়ানো ভাসমান মানুষের মাঝে খাবার বিতরণ করা হয়।
উক্ত কার্যক্রম সমূহে উপস্থিত ছিলেন সিটি ইউনিট লেভেল অফিসার মুহাম্মদ ইয়াহইয়া বখতিয়ার, যুব রেড ক্রিসেন্ট চট্টগ্রামের দপ্তর বিভাগীয় প্রধান আ.ন.ম তামজীদ, কার্যকরী পর্ষদ সদস্য ও যুব স্বেচ্ছাসেবকরা।

ঝিনাইদহের কালীগঞ্জে ছাগল বিক্রির টাকা নিয়ে কৃষককে কুপিয়ে হত্যা

ঝিনাইদহের কালীগঞ্জে ছাগল বিক্রির টাকা নিয়ে কৃষককে কুপিয়ে হত্যা





খোন্দকার আব্দুল্লাহ বাশার, ঝিনাইদহ জেলা প্রতিনিধি। 



ঝিনাইদহের কালীগঞ্জ উপজেলার দৌলতপুর গ্রামে ছাগল বিক্রির ৩’শ টাকার জন্য আমিরুল ইসলাম (৪০) নামে এক কৃষককে কুপিয়ে হত্যা করা হয়েছে।

শুক্রবার সন্ধ্যা ৭ টার দিকে এ ঘটনা ঘটে। নিহত আমিরুল ইসলাম দৌলতপুর গ্রামের জবেদ বিশ্বাসের ছেলে।

গ্রামবাসী জানায়, দৌলতপুর গ্রামের ছামছুল মন্ডলের ছেলে শাহিন হোসেন আমিরুলের দুলাভাইয়ের নিকট একটি ছাগল বিক্রি করে। বেশ কিছুদিন পরে ওই ছাগলের টাকা আরও ৩’শ পাবে বলে দাবি করে শাহিন। এ টাকা দিতে অস্বীকৃতি জানালে এ নিয়ে উভয়ের মধ্যে কথাকাটাকাটি হয়। পরবর্তীতে তা থেমেও যায়। এরপর শুক্রবার সন্ধ্যার পর আমিরুল
ইসলাম যখন গ্রামের মধ্যদিয়ে হেটে বাড়ি ফিরছিলেন। রাস্তায় আগে থেকে ওৎ পেতে থাকা সন্ত্রাসী শাহিন ধারালো গাছি দা দিয়ে আমিরুলকে কুপিয়ে জখম করে। পরে স্থানীয়রা উদ্ধার করে হাসপাতালে নেওয়ার পথে আমিরুল মারা যায়।

কালীগঞ্জ উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সের জরুরী বিভাগের চিকিৎসক ডাঃ আহসান হাবিব জানান, মাথা, বুক ও পিঠে প্রায় ৭/৮ টি কুপিয়ে জখম করার চিহ্ন ছিল। রক্তাক্ত অবস্থায় হাসপাতালে আনার পর সে মারা যায়।

কালীগঞ্জ থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা মোঃ মাহফুজুর রহমান মিয়া জানান, ছাগল বিক্রির টাকা নিয়ে গ্রামে কয়েকদিন ঝামেলা হচ্ছিল। গতকাল বৃহস্পতিবার ছাগল বিক্রির ৩ হাজার টাকা পরিশোধও করা হয়। ৩’শ টাকা বাকি ছিল। এই টাকার জন্য শাহিন নামের এক যুবক আমিরুলকে কুপিয়ে হত্যা করেছে। শাহিনকে গ্রেফতারে পুলিশ অভিযানে নেমেছে।

কুমিল্লার মুরাদনগরের ন্যাপ নেতা বীর মুক্তিযোদ্ধা ফরিদ উদ্দিনের ইন্তেকাল। রাষ্ট্রীয় মর্যাদায় দাফন

কুমিল্লার  মুরাদনগরের ন্যাপ নেতা বীর মুক্তিযোদ্ধা  ফরিদ উদ্দিনের ইন্তেকাল। রাষ্ট্রীয় মর্যাদায় দাফন





শাহ আলম জাহাঙ্গীর
ব্যুরো চিফ, কুমিল্লা


কু‌মিল্লা মুরাদনগর উপ‌জেলা পরিষদের  ম‌হিলা ভাইস চেয়ারম্যান সা‌নোয়ারা বেগম লুনার বাবা ও ন্যাপ নেতা মুক্তিযোদ্ধা মোঃ ফ‌রিদ উদ্দিন সরকার (৭০) আজ শুক্রবার ১২ জুন ভোর ৬টায় তার  নিজ বাড়ি রহিমপুরে  ইন্তেকাল করেন। ( ইন্না-লিল্লাহি ওয়া ইন্না ইলাইহি রাজিউন)।

মৃত্যুকা‌লে তার বয়স হয়েছিল ৭০ বছর। তার ৩ ছে‌লে এবং এক মে‌য়েসহ অসংখ্য আত্মীয়স্বজন ও গুণগ্রাহী রে‌খে যান। তিনি দীর্ঘদিন ধরে বার্ধক্যজনিত অসুস্থ্তায় ভুগছিলেন।


মরহুমের জানাযা নামাজ আজ বাদ জুম্মা মুরাদনগর চৌধুরীকা‌ন্দি মুরাদনগর ফায়ার সা‌র্ভিস স্টেশনের প‌শ্চিমপা‌শে নোয়াকা‌ন্দি র‌হিমপুর চৌধুরীকা‌ন্দি ঈদগাহ ময়দা‌নে  অনু‌ষ্ঠি‌ত হয়।। রাষ্ট্রীয় মর্যাদা শেষে বীর মুক্তিযোদ্ধা ও ন্যাপনেতা ফরিদ উদ্দিন সরকারের লাশ দাফন করা হয়।

বন্দর, ই পি জেড, পতেঙ্গা এলাকায় সরকারি হাসপাতালের দাবিতে মানববন্দন অনুষ্ঠিত

বন্দর, ই পি জেড, পতেঙ্গা এলাকায় সরকারি হাসপাতালের দাবিতে মানববন্দন অনুষ্ঠিত




মোঃ হাসান রিফাত
চট্টগ্রাম প্রতিনিধি

বাংলাদেশ মানবাধিকার কমিশন ইপিজেড থানা শাখার উদ্দ্যগে বন্দর -ইপিজেড-পতেঙ্গা এলাকায় স্থায়ী সরকারি হাসপাতালের দাবিতে সংগঠনের সহ সভাপতি নারী নেত্রী শারমীন ফারুক সুলতানার সভাপতিত্বে সাধারন সম্পাদক মানবতাবাদী হাজী মোঃ নাছির উদ্দীনের সঞ্চালনায় শুক্রবার বেলা ৩:৪০ ঘটিকায় বন্দরটিলা চত্বরে মানববন্ধন অনুষ্ঠিত হয়।
 এতে বক্তব্য রাখেন সংগঠনের যুগ্ন সাধারন মোঃ আজাদ হোসেন রাসেল,স্বাস্থ্য বিষয়ক সম্পাদক খান মোঃ সাইফুল,সমাজ কল্যান সম্পাদক আলাউদ্দিন ফারুক,প্রচার সম্পাদক ইকবাল হোসেন সুমন,আইন সম্পাদক নাজিম উদ্দিন,সামাজিক প্রতিনিধি মোঃ বেলাল ও সাইফুর রহমান রনি,৩৯ নং ওয়ার্ড শাখার সহ সভাপতি মোঃ শাহজাহান, যুগ্ন সাধারন সম্পাদক ইফতেখার হোসেন জিসান,সদস্য রাসেল মাহমুদ, সালাউদ্দিন টিটু,ফয়সাল বিন নাছির।এতে আরও উপস্থিত ছিলেন নারীনেত্রী  নাসিমা আক্তার,বিলকিছ বেগম,মাহিম ইসলাম রায়হান, শাফায়াত উল্লাহ শুভ,দঃ হালিশহর উচ্চ বিদ্যালয়ের ছাত্র সংসদের ভিপি রাসেল গাজী, মা ও মনি কমিটির সদস্য রবিউল হোসেন  সহ প্রমুখ। উক্ত মানববন্ধনে হালিশহর সমাজ কল্যান পরিষদ, জ্ঞানের মশাল,মা ও মনি কমিটি সহ বিভিন্ন সমাজিক সংগঠন ও সামাজিক রাজনৈতিক ব্যক্তিবর্গ একাত্বতা প্রকাশ করে অংশ গ্রহন করেন।
বক্তারা অত্র এলাকার মানুষের দীর্ঘ্য দিনের প্রানের দাবী একটি পুনাঙ্গ সরকারি হাসপাতালের দাবি জানান,বানিজ্যিক রাজধানী খ্যাত  চট্টগ্রামে আজ মহামারি কালে বিভিন্ন হাসপাতালে করোনা ছাড়াও অন্যান্য রোগে আক্রান্ত ব্যাক্তিদের ভর্তী না নিয়ে মৃত্যর মুখে ঠেলে দেওয়ার তীব্র নিন্দা জানান। অতি শীঘ্রই লক্ষ লক্ষ পোশাক শ্রমিকের জন্য একটি ফিল্ড হাসপাতালের ও দাবী  জানানো হয়।উক্ত মানববন্ধন হতে দেশের এ সংকট কালে করোনা যুদ্ধে অংশ নেওয়া সকল ডাক্তার নার্স,পুলিশ সহ বিভিন্ন সরকারি বেসরকারি ও সামাজিক সংগঠনের ব্যক্তিবর্গের প্রতি কৃতজ্ঞতা প্রকাশ করেন।
ভবিষ্যতে হাসপাতালে দাবীতে আরও বৃহত কর্মসুচী ঘোষনা দিবে বলেও জানান বক্তারা।এ মহামারি সময়
মানববন্ধনে অংশ নেওয়ায় সকলকে ধন্যবাদ জানানো হয়।

সুন্দরবনের করমজলে কুমির পিলপিল ৪৪টি ডিম পেড়েছে

সুন্দরবনের করমজলে কুমির পিলপিল  ৪৪টি ডিম পেড়েছে




মোঃএরশাদ হোসেন রনি, মোংলা  
সুন্দরবনের করমজল কুমির প্রজনন কেন্দ্রে ১২ জুন শুক্রবার সকালে কুমির পিলপিল ৪৪টি ডিম পেড়েছে। এর আগে গত ২৯ মে কুমির জুলিয়েট ৫২টি ডিম দিয়েছিলো। ডিম পাড়ার ৮৫ থেকে ৯০ দিনের মধ্যে ডিম থেকে কুমির ছানা ফোটার সম্ভাবনা রয়েছে।

সুন্দরবনের করমজল বন্যপ্রণী প্রজনন কেন্দ্রের ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা মোঃ আজাদ কবির জানান শুক্রবার সকালে বাংলাদেশের একমাত্র করমজল সরকারি কুমির প্রজনন কেন্দ্রের কুমির পিলপিল ৪৪টি ডিম পেড়েছে। এরমধ্যে ২১টি ডিম পিলপিলের বাসায় এবং ২৩টি ডিম ইনকিউবেটরে ( নির্দিষ্ট তাপমাত্রায় ) রাখা হয়েছে। এর আগে গত ২৯ মে কুমির জুলিয়েট ৫২টি ডিম পেড়েছে। যার মধ্যে ১৪টি ডিম জুলিয়েটের নিজের বাসায় এবং ৩৮টি ডিম ইনকিউবেটরে ( নির্দিষ্ট তাপমাত্রায় ) রাখা হয়েছে। ডিম পাড়ার ৮৫ থেকে ৯০ দিনের মধ্যে ডিম থেকে কুমির ছানা ফুটে বের হবে। এবার ভালো ফলাফল আশা করছেন করমজল কুমির প্রজনন কেন্দ্রের ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা মোঃ আজাদ কবির।

"ঝিনাইদহ জেলায় পানিতে ডুবে এক শিশুর মৃত্যু

"ঝিনাইদহ জেলায় পানিতে ডুবে এক শিশুর মৃত্যু





সম্রাট হোসেন শৈলকুপা (ঝিনাইদ)উপজেলা প্রতিনিধিঃ

ঝিনাইদহ সদর উপজেলার  হলিধানী ইউনিয়ন এর নাটাবাড়িয়া  গ্রামে  কারিগর পাড়ার সাধনের ছেলে জিৎ  দশ বছর বয়স. পানিতে ডুবে মারা যায় । সকাল এগারোটার বৃষ্টি চলাকালীন অবস্থায় নিখোঁজ  হয় সবাই ধারণা করে  নদীতে ডুবে গেছে টানা ৫ ঘন্টা খোঁজাখুঁজির পরেও কোথাও পাওয়া যায় না গ্রামের এক-তৃতীয়াংশ লোক সবাই পানিতে অনেক খোঁজাখুঁজি করে কিন্তু ঘটনাটি ঘটে তার বাড়ির পাশে একটি ছোট্ট পুকুর সেখানে ডুবে যায়। তার বাসার পাশে মানোয়ার নামের একজন দেখে ছোট গরতের  পানিতে কালো চুল ভাষা পরে সে একটি লাঠি ব্যবহার করে দেখে আসলে জিনিসটা কি  পরে দেখা যায় ১০ বছর বয়সেই মৃত জিতকে ছেলেটি অনেক চঞ্চল প্রকৃতির ছিল তার মৃত্যুতে পুরো মহল্লাবাসীর শোকের ছায়া নেমে আসে

সিরাজগঞ্জে ডিজিটাল ব্যাংকিং হ্যাকার চক্রের ১ সদস্য গ্রেপ্তার

সিরাজগঞ্জে ডিজিটাল ব্যাংকিং হ্যাকার চক্রের ১ সদস্য গ্রেপ্তার
 




মাসুদ রানা সিরাজগঞ্জ জেলাপ্রতিনিধিঃ সিরাজগঞ্জের র‌্যাব-১২ সদস্যরা নাটোরের গুরুদাসপুরে অভিযান চালিয়ে ডিজিটাল ব্যাংকিং হ্যাকার চক্রের রাব্বী ইসলাম (২১) নামে এক সদস্যকে গ্রেফতার করেছে। সে গুরুদাসপুর উপজেলা সদরের আনিসুর রহমান প্রামনিকের ছেলে।
র‌্যাব-১২’র স্পেশাল কোম্পানী কমান্ডার এএসপি মোঃ শফিকুর রহমান এক প্রেস বিজ্ঞপ্তিতে এ তথ্য নিশ্চিত করেছেন। প্রেস বিজ্ঞপ্তিতে বলা হয়েছে, গোপন সংবাদের ভিত্তিতে র‌্যাব-১২’র তথ্য প্রযুক্তি কাজে লাগিয়ে বুধবার বিকেলে উল্লেখিত এলাকায় অভিযান চালিয়ে তাকে গ্রেফতার করা হয়।
এ সময় তার কাছ থেকে হ্যাকিং এর কাজে ব্যবহৃত ৯টি মোবাইলসেট, ৭ টি সিমকার্ড, ৬ টি ডিভিডি, ১টি পাওয়ার ব্যাংক, ১টি কম্পিউটারের র‌্যাম ও ১টি মেমোরী কার্ড জব্দ করা হয়। এ ব্যাপারে সংশ্লিষ্ট থানায় মামলা হয়েছে।

নগরীর ই পি জেড এলাকায় ব্যারিষ্টার সুলতান আহমেদ চৌধুরী ডিগ্রী কলেজ প্রাঙ্গণে করোনাভাইরাসের নমুনা পরীক্ষা সংগ্রহ করার বুথ স্থাপন

নগরীর ই পি জেড এলাকায় ব্যারিষ্টার সুলতান আহমেদ চৌধুরী ডিগ্রী কলেজ প্রাঙ্গণে করোনাভাইরাসের নমুনা পরীক্ষা সংগ্রহ করার বুথ স্থাপন





মোঃ হাসান রিফাত
চট্টগ্রাম প্রতিনিধি

চট্টগ্রামের ইপিজেড থানার ব্যারিষ্টার সুলতান আহমেদ চৌধুরী ডিগ্রী কলেজ প্রাঙ্গণে করোনাভাইরাসের নমুনা পরীক্ষা সংগ্রহ করার বুথ স্থাপন করা হয়েছে।

 বৃহস্পতিবার (১১ জুন) সকালে চট্টগ্রাম-১১ আসনে এম এ লতিফের উদ্যোগে এই বুথের সেবা কার্যক্রম চালু হয়।

চট্টগ্রাম চেম্বার অব কমার্স এন্ড ইন্ডাস্ট্রিজের আর্থিক সহযোগিতায় পাওয়া এই বুথের সার্বিক তত্ত্বাবধানে দায়িত্বে থাকবেন স্থানীয় কাউন্সিলর জিয়াউল হক সুমন। বন্দরটিলা ওয়ার্ড কাউন্সিলর অফিস থেকে নমুনা পরীক্ষার টোকেন সংগ্রহ করে ব্যারিষ্টার সুলতান আহমেদ চৌধুরী ডিগ্রী কলেজ প্রাঙ্গণে গিয়ে স্ব স্ব ব্যক্তি নমুনা পরীক্ষা দিতে হবে। সাপ্তাহিক ছুটির দিন শুক্রবার ছাড়া বাকি দিনগুলোতে সকাল ১০টা থেকে সেবা কার্যক্রম চালু থাকবে।

বিষয়টি নিশ্চিত করে কাউন্সিলর জিয়াউল হক সুমন বলেন, ‘করোনা মহামারি মোকাবেলায় এমপি মহোদয়ের উদ্যোগে করোনা আক্রান্ত সন্দেহ ব্যক্তিদের জন্য এটির উদ্যোগ নেয়া হয়েছে। যে কেউ বিনামূল্যে ওয়ার্ড অফিস থেকে টোকেন সংগ্রহ করে নমুনা পরীক্ষা করতে পারবেন। প্রথম দিনে এই পর্যন্ত ২০ জনের নমুনা সংগ্রহ করা হয়েছে।’

চুয়াডাঙ্গায় ছেলের হাতে মায়ের মৃত্যু!

চুয়াডাঙ্গায় ছেলের হাতে মায়ের মৃত্যু!





মোঃ কাওসার আলী, চুয়াডাঙ্গা জেলা প্রতিনিধিঃ    চুয়াডাঙ্গা জেলার জীবন নগর উপজেলা গঙ্গাদাসপুর গ্রামে, আজ শুক্রবার সকাল ১১ ঘটিকায় জামিরুল ইসলাম (২৫) নামের যুবক পারিবারিক ঝামেলা নিয়ে তার মায়ের সাথে বাকবিতন্ডায় জড়িয়ে পড়ে। একপর্যায়ে নিজেকে নিয়ন্ত্রণ করতে না পেরে কাঠের টুকরো দিয়ে মায়ের মাথায় আঘাত করে। এবং মা জখন যন্ত্রনায় ছটফট করে সেই মুহুর্তে জামিরুল নিজেই গলায় দড়ি দেয়। প্রতিবেশী লোকজন দ্রুত জামিরুল কে দড়ি কেটে নামিয়ে এনে তার মা কে এবং তাকে জীবন নগর উপজেলা সাস্থ কমপ্লেক্স এ প্রেরন করে। সেখানে কর্মরত ডাক্তার জামিরুল এর মা কে মৃত ঘোষণা  করে। এবং জামিরুল এর অবস্থার উন্নতি হয়। স্বজনরা লাশ ও জামিরুল কে বাড়িতে নিয়ে আসে। কিছুক্ষন পর জীবন নগর উপজেলা থানা ওসি ফোর্স নিয়ে ঘটনাস্থলে পৌছায় এবং জামিরুল কে গ্রেফতার করে চিকিৎসার জন্য হাসপাতালে প্রেরন করে। এবং লাশ ময়নাতদন্তের জন্য চুয়াডাঙ্গা সদর হাসপাতালে প্রেরন করে।

গৃহ শিক্ষকের গোপন কান্না!

গৃহ শিক্ষকের গোপন কান্না!




মোঃ কাওসার আলী,চুয়াডাঙ্গা জেলা প্রতিনিধিঃ
  
করোনা সারা বিশ্বকে নাড়িয়ে দিয়েছে।বিশ্বের কোনো দেশই করোনার থাবা  থেকে মুক্ত নয়।ধনী-গরিব,সাদা-কালো,লম্বা-বেটে কাউকেই চেনেনা করোনা।সবাইকে নির্বিচারে আক্রমন করে চলেছে।কিন্তু এর শিকারে করুন পরিণতি হচ্ছে গরিবদের বিশেষ করে যারা দিন আনে দিন খায়।কিন্তু আমরা কি একবারের জন্য ভেবেছি অসহায় গৃহ শিক্ষকদের কথা।যারা না পাচ্ছে কারও সাহায্য না পাচ্ছে কারও কাছে সাহায্য চাইতে।এই গৃহশিক্ষকরাই কিন্তু শিক্ষা ফেরি করে বেড়ায় এ দরজা থেকে ও দরজা।গত মার্চের শেষদিকে সকল স্কুল,কলেজ,কোচিং করে দিয়েছে সরকার এবং এর ফলে পড়ানো বন্ধ হয়েছে গৃহশিক্ষকদের যাদের বেশির ভাগই চলমান ছাত্র।যারা তাদের এ শিক্ষকতা থেকে যা উপার্জন করত তা দিয়ে তারা নিজের পড়াশোনার খরচ চালিয়ে বাড়িতেও বাবা মাকে সাহায্য করত।

কিন্তু বর্তমানে সেসব বন্ধ।কেউ কেউ বাড়িতে দিনমজুরের কাজও করছে।কিন্তু বেশির ভাগই সেগুলো করতে পারছেনা ফলে আসহায় জীবন যাপন করছে।কিন্তু অত্যন্ত দুঃখের বিষয় আমরা একবারের জন্যও তাদের কোনো খোজ খবর নিইনি।একবারের জন্যও ভেবে দেখিনি তাদের কথা যারা এক সময় তাদের জ্ঞান বিলিয়ে দিতো ছোট ছোট শিশুদের মাঝে।এখন তার সেইসব অভিভাকদের কাছেও উপেক্ষিত যাদের বাচ্চাদের তারা পড়াতো।পরিশেষে অভিভাবকদের বলতে চাই আমরা  কি তাদের খোজখবর নিতে পারিনা,তাদেরকে সাহায্য করতে পারিনা?আসুন আমরা এই অসহায় গৃহশিক্ষকদের পাশে দাড়াই।
ভাল থাকুক পৃথিবী,ভাল থাকুক সবাই।

মিরসরাইয়ে বুজর্গ আলেম মাওলানা নুরুল হুদার ইন্তেকাল

মিরসরাইয়ে বুজর্গ আলেম মাওলানা নুরুল হুদার ইন্তেকাল





মিরসরাই প্রতিনিধি
মিরসরাইয়ের বিশিষ্ট বুজর্গ আলেম, শতবর্ষী আবুরহাট মনিরুল ইসলাম মাদরাসার মুহতামিম হযরত মাওলানা নুরুল হুদা (৮২) ইন্তেকাল করেছেন (ইন্নালিল্লাহি ওয়াইন্নাইলাইহি রাজিউন)। শুক্রবার (১২ জুন) বেলা সাড়ে ১১টার সময় আবুরহাট মাদরাসায় নিজ কক্ষে তিনি ইন্তেকাল করেছেন। একই দিন বাদে মাগরিব আবুরহাট মাদরাসা মাঠে জানাযা শেষে ওনাকে দাফন করা হয়েছে। মাওলানা নুরুল হুদা কাটাছরা ইউনিয়নের মুরাদপুর গ্রামের মাওলানা এলাহি বকসের পুত্র ও সাবেক চেয়ারম্যান মরহুম কেফায়েত উল্লাহ’র ভাই। মৃত্যুকালে ৩ ছেলে ২ মেয়ে সহ অসংখ্য গুনগ্রাহী রেখে গেছেন। জানাযায় আলেম, ওলামা, বিভিন্ন রাজনৈতিক দলের নেতবৃন্দ, ব্যবসায়ী, সামাজিক ব্যক্তিবর্গ উপস্থিত ছিলেন। 

মরহুমের ভাতিজা ও আবুরহাট মনিরুল ইসলাম মাদরাসার পরিচালক মাওলানা শহিদুল ইসলাম জানান, মাওলানা নুরুল হুদা সাহেব দীর্ঘ ৪০ বছর অত্র মাদরাসার মুহতামিমের দায়িত্ব পালন করেছেন। তিনি দীর্ঘদিন ধরে ডায়াবেটিস সহ বার্ধক্যজনিত রোগে ভুগছিলেন।
তিনি একজন নির্লোভ, মুখলেছ ও হক্কানী আলেম ছিলেন। ওনার ইন্তেকালে মিরসরাইবাসী একজন দ্বীনের একনিষ্ঠ খাদেম হারালো। আল্লাহ্ পাক মরহুমকে জান্নাতে উচ্চ মাকাম দান করেন।

মোংলা-রামপালের ৩ হাজার বিএনপি নেতা-কর্মীদের মাঝে মাস্ক বিতরণ

মোংলা-রামপালের ৩ হাজার বিএনপি নেতা-কর্মীদের মাঝে মাস্ক বিতরণ





মোংলা (বাগেরহাট) প্রতিনিধি

বৈশ্বিক মহামারী করোনাভাইরাস সংক্রমণ হতে সুরক্ষার জন্য মোংলা-রামপালের ৩ হাজার বিএনপি নেতা-কর্মী ও সমর্থকদের মাঝে উন্নতমানের মাস্ক বিতরণ করা হয়েছে। বাগেরহাট জেলা বিএনপিথর যুগ্ম আহবায়ক আলহাজ্ব লায়ন ডক্টর শেখ ফরিদুল ইসলামের পক্ষ থেকে শুক্রবার মোংলা ও রামপালের দলীয় নেতা-কর্মীদের মাঝে এ মাস্ক বিতরণ করা হয়। ড. ফরিদের পক্ষে মোংলা-রামপালের বিভিন্ন এলাকায় স্থানীয় বিএনপিসহ সহযোগী অঙ্গসংগঠনের নেতা ফকির শাহাদাৎ হোসেন, আঃ হালিম পাটোয়ারী, আলতাফ হোসেন বাবু, দপ্তর সম্পাদক জাহিদুল ইসলাম, শেখ আব্দুল্লাহ আজমী, ফকির আবু জাফর, মোঃ আলমগীর হোসেন, আব্বাস হোসেন, লিয়াকত হোসেন, সিরাজুল ইসলাম, কাজী ওজিয়ার রহমান, আলমগীর কবির বাচ্চু, মহাসিন হোসেন, মাছুদুর রহমান পিয়াল, ওহিদুজ্জাম সাবু, সরদার বাকি বিল্লাহ, নোয়াব হোসেন, মারুফ হোসেন, শেখ হাবিবুর রহমান, তরিকুল ইসলাম শোভন, মোফাজ্জল হোসেন বাদল, তুহিন এ মাস্ক বিতরণ করেছেন। 

বাগেরহাট জেলা বিএনপির যুগ্ম আহবায়ক আলহাজ্ব লায়ন ডক্টর শেখ ফরিদুল ইসলাম জানান, গত তিন মাস ধরে বিএনপিথর ভারপ্রাপ্ত চেয়ারম্যান তারেক রহমানের নির্দেশনায় তার ব্যক্তিগত পক্ষ থেকে মোংলা-রামপালের ১৬টি ইউনিয়ন ও একটি পৌরসভার মানুষকে করোনা সম্পর্কে সচেতন করতে লিফলেট বিতরণ ও মাস্ক বিতরণের পাশাপাশি প্রায় সাড়ে ৩ হাজার পরিবারের মাঝে খাদ্য সহায়তা, নগদ অর্থ প্রদাণ এবং পরিচ্ছন্নতা সামগ্রী বিতরণ করা হয়েছে। করোনা পরিস্থিতির উন্নতি না হওয়া পর্যন্ত তার এ কার্যক্রম চলমান থাকবে বলেও জানান তিনি। এছাড়াও স্থানীয় দলীয় নেতা-কর্মীদের দিয়েও বিভিন্নস্থানের অসহায় কৃষকদের ধান কেঁটে দেওয়া হয়েছে। সকল পর্যায়ের অঙ্গসংগঠনের নেতা-কর্মী ও সমর্থকরা যাতে করোনাকালে কর্মহীন দুঃস্থ ও অসহায় মানুষের পাশে থেকে কাজ করতে পারেন সেজন্য তিনি সকলের সহযোগীতা কামনা করেন। 

করোনায় অসহায়দের পাশে দাঁড়ালো মোংলা সাহিত্য পরিষদ

করোনায় অসহায়দের পাশে দাঁড়ালো মোংলা সাহিত্য পরিষদ






মোঃএরশাদ হোসেন রনি, মোংলা    
করোনাকালে অসহায় অসচ্ছল কর্মহীন পরিবারের মাঝে নগদ অর্থ ও খাদ্য সামগ্রী বিতরণ করেছে মোংলা সাহিত্য পরিষদ।
শুক্রবার (১২ জুন) বিকাল ৫ টায় ট্রেডার্স মসজিদ রোডস্থ সংগঠনের নিজস্ব কার্যালয়ে অসহায় অসচ্ছল ৪০ টি  পরিবার মাঝে খাদ্য সামগ্রী বিতরণ করা হয়। খাদ্য সামগ্রীর মধ্যে ছিল মিনিকেট চাল ৫ কেজি, সয়াবিন তৈল ১ লিটার, ২ কেজি আটা, ১ কেজি মসুরের ডাল ও ১ কেজি লবন।
এসময় উপস্থিত ছিলেন মোংলা সাহিত্য পরিষদের আহ্বায়ক ও তারুণ্য মোংলা'র সভাপতি মো. মনির হোসেন, সাপ্তাহিক মেছেরশাহ্ পত্রিকার সম্পাদক ও প্রকাশক শেখ আসাদুজ্জামান, বিশিষ্ট কবি ও ছড়াকার জাহির কামাল, কবি ও ছড়াকার শেখ মো. সাইফুল্লাহ, কবি জাহিদুর রহমান জাহিদ, কবি আসমা আক্তার কাজল, কবি তারেক বিন সুলতান, কবি অসীম কুমার পোদ্দার, কবি আব্দুর রতন জোমাদ্দার, কবি মো. মফিজুল ইসলাম, কবি শাহিনা জামান মিথিলা, মো. আলাউদ্দিন, কবি অনুরাগ দত্ত, কবি মো. আলাউদ্দিন,মোংলা যুব ফোরামের সভাপতি পারভেজ খান,মোংলা স্টুডেন্টস ক্যাটারসের সভাপতি ও দৈনিক আলোকিত সকাল'র স্থানীয় প্রতিনিধি মো. আজিজ মোড়ল, দৈনিক স্বদেশ বিচিত্রার স্থানীয় প্রতিনিধি মো. সুজন প্রমূখ।
মোংলা সাহিত্য পরিষদের আহ্বায়ক মনির হোসেন বলেন, করোনায় কর্মহীন হয়ে পড়া পরিবারগুলোকে আমরা নিজেরা যেমন সহযোগিতা করে যাচ্ছি তেমনি সামরিক বাহিনী ও বিভিন্ন এনজিও সংস্থার পক্ষ থেকে ত্রাণ ও নগদ অর্থ সহায়তা পেতে অসচ্ছল পরিবারগুলোকে সহযোগিতা করে যাচ্ছি।

দিনাজপুরের বিরলে সড়ক দূর্ঘটনায় এক ছাত্রী নিহত!

দিনাজপুরের বিরলে সড়ক দূর্ঘটনায় এক ছাত্রী নিহত!





দিনাজপুর প্রতিনিধিঃ দিনাজপুরের বিরলে সড়ক দূর্ঘটনায় এক বিশ্ববিদ্যালয় পড়ুয়া ছাত্রী নিহত হয়েছে।  
শুক্রবার বিকালে দিনাজপুর-বোচাগঞ্জ সড়কের বিরল উপজেলার মঙ্গলপুর ইউপি'র রঘুনাথপুর চেয়ারম্যান রোডে মোটরসাইকেল এর সাথে ট্রাকের সাথে সংঘর্ষ ঘটে। সংঘর্ষে বোচাগঞ্জ উপজেলার সেতাবগঞ্জ পৌরশহরের সুবিদহাট (ফায়ারসার্ভিস) এলাকার মৃত মমিনুল ইসলাম মমিন এর কন্যা হাজী মোহাম্মদ দানেশ বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়ের অনার্স (ইংরেজি) ২য় বর্ষের ছাত্রী তাহের-এ ফাইয়াজ মৌ (১৮) ও মোটরসাইকেল এর চালক তাঁর খালাতো ভাইও গুরুতর আহত হলে তাঁদেরকে দিনাজপুর এম আব্দুর রহিম মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে নেয়া হয়। কর্তব্যরত চিকিৎসক মৌকে সেখানে মৃত ঘোষণা করে।  
বিরল থানার অফিসার ইনচার্জ শেখ নাসিম হাবিব বিষয়টি নিশ্চিত করে জানান, লাশ মেডিকেল এর মর্গে আছে। পরবর্তী আইনানুগ কার্যক্রম গ্রহণের প্রস্তুতি চলছে।
 

সাতক্ষীরায় স্বামী কর্তৃক স্ত্রীর কান কর্তন!

সাতক্ষীরায় স্বামী কর্তৃক স্ত্রীর কান কর্তন!





আজহারুল ইসলাম সাদীঃ
সাতক্ষীরার পল্লীতে স্বামী কর্তৃক স্ত্রীর কান কর্তন হওয়ার খবর পাওয়া গেছে।
ঘটনার বিবরণে প্রকাশ সাতক্ষীরা সদর উপজেলার বডার সীমান্তের কুশখালি গ্রামের ময়েজউদ্দিন মোল্লার কন্যা ফিরোজা বেগম (৩৫) এর প্রায় বাইশ বছর আগে একই গ্রামের মৃত্যু ছালামত সরদার এর ছেলে জাকির হোসেন (৪০) এর বিবাহ হয়, বিয়ের পরে তাদের ঘরে দুটি সন্তানের জন্ম হয় বড় সন্তানের বয়স ১৯।
স্বামী জাকির হোসের এলাকার একটি মৎস্য ঘের দেখাশোনার কাজ করেন, যা বেতন পান তাহাতে, তাহাদের সংসার ভালোভাবে চলে যান।
কিন্ত নেশাখোর স্বামী বাপের বাড়ি থেকে তার স্ত্রী কে টাকা এনে দেয়ার জন্য প্রায়ই চাপাচাপি করতে থাকেন।
গরীব ভাইয়েরা টাকা দিতে পারবেনা বিধায় সে টাকা আনতে বাপের বাড়ি যেতো না।
এরই এক পর্যায়ে ১১ জুন বাপের বাড়ি থেকে টাকা আনা নিয়ে স্বামী স্ত্রীর মধ্যে ঝগড়া হয়, ঝগড়ার এক পর্যায়ে ক্ষিপ্ত হয়ে স্বামী জাকির হোসেন ধারালো অস্ত্র দিয়ে স্ত্রী ফিরোজা বেগমের ডান কান কর্তন করে ফেলে।
রক্তাক্ত আহত অবস্থায় ফিরোজা বেগম ভর্তি হন সাতক্ষীরা সদর হাসপাতালে।
বর্তমানে সেখানে চিকিৎসাধীন আছেন তিনি।
এ প্রতিবেদকের সাথে আহত ফিরোজা বেগম ও তার ভাইয়ের সাথে আলাপকালে জানা গেছে তারা কোন মামলা করেনি, স্থানীয় মেম্বার তাদের আশ্বাস দিয়েছেন ফিরোজা বেগম সুস্থ্য হয়ে হাসপাতাল থেকে বাসায় ফিরলে শালিসির মাধ্যমে বিস্তারিত নিয়ে মিমাংসা করবেন।

কুমিল্লায় সাবেক পৌর কাউন্সিলরসহ নতুন করে ৯ জন করোনাভাইরাসে আক্রান্ত

কুমিল্লায় সাবেক পৌর কাউন্সিলরসহ নতুন করে ৯ জন করোনাভাইরাসে আক্রান্ত



 
মো: রবিউল হো: সবুজ,(লাকসাম-নাঙ্গলকোট প্রতিনিধি) :

কুমিল্লার নাঙ্গলকোটে সাবেক পৌর কাউন্সিলরসহ নতুন করে ৯ জন করোনাভাইরাসে আক্রান্ত ।অপরদিকে সুস্থ হয়েছে ২৩ জন। এ নিয়ে পুরো উপজেলায় ৭৫ জন করোনা আক্রান্ত। মারা গেছে দুজন। সুস্থ হয়েছে ৩৭ জন। শুক্রবার বিকেলে করোনা আক্রান্তদের বাড়ি লকডাউন করেছে উপজেলা প্রশাসন।   

আক্রান্তরা হলো–পৌর সদরের হরিপুর গ্রামের তিনজন, নাগোদা গ্রামে সাবেক পৌর কাউন্সিলর, ঢালুয়া ইউপির চৌকুড়ি গ্রামের চারজন ও হেসাখাল ইউপির হেসাখাল গ্রামের একজন। আজ বিকেলে উপজেলা স্বাস্থ্য কর্মকর্তা ডা. দেব দাস দেব এ বিষয়টি নিশ্চিত করেন।      তিনি আরও জানান, গত মঙ্গলবার (৯ জুন) স্থানীয় লোকজন মারপথ জানতে পেরে উপজেলা র‌্যাপিড রেসপন্স টিম তার নমুনা সংগ্রহ করে কুমিল্লা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালের পিসিআর ল্যাবে পাঠায়। আজ তাদের রিপোর্ট পজিটিভ আসে।

এ পর্যন্ত সাতশ ৫০ জনের নমুনা সংগ্রহ করেছে উপজেলা স্বাস্থ্য বিভাগ। এখনো পর্যন্ত ছয়শ ৮০ জনের করোনা রিপোর্ট আসে। যার মধ্যে ৭০ জনের রিপোর্ট বাকি রয়েছে। এ নিয়ে পুরো উপজেলায় ৭৫ জনের করোনা শনাক্ত হয়।  

এ বিষয়ে নাঙ্গলকোট থানার অফিসার ইনচার্জ বখতিয়ার উদ্দিন চৌধুরী বলেন, খবর পেয়ে উপজেলা প্রশাসনের মাধ্যে ওই এলাকার করোনা আক্রান্তদের বাড়ি লকডাউন করা হবে। পাশাপাশি তাৎক্ষণিক পুলিশ পাঠিয়ে তাদেরকে নজরদারিতে রাখা হয়েছে।



নাগরপুরে বীর মুক্তিযোদ্ধা গোলাম মোস্তফা খান এর রাষ্ট্রীয় মর্যাদায় দাফন সম্পন্ন

নাগরপুরে বীর মুক্তিযোদ্ধা গোলাম মোস্তফা খান এর রাষ্ট্রীয় মর্যাদায় দাফন সম্পন্ন





হাসান সাদী:নাগরপুর(টাংগাইল)প্রতিনিধিঃ
টাঙ্গাইলের নাগরপুরে সলিমাবাদ ইউনিয়নের ঘুনিপাড়া গ্রামের উত্তর পাড়ার মুক্তিযোদ্ধা আলহাজ্ব গোলাম মোস্তফা খানের রাষ্ট্রীয় মর্যাদায় দাফন সম্পন্ন হয়েছে। তার মৃত্যুতে সমস্ত পরিবারের প্রতি গভীর সমবেদনা ও রুহের মাগফেরাত কামনা করে শোক প্রকাশ করেছেন সাবেক মুক্তিযোদ্ধা কমান্ডার মোঃ সুজায়েত হোসেন।শুক্রবার বিকাল ৩.০০ টার সময় নাগরপুর উপজেলার সলিমাবাদ ইউনিয়নের ঘুনিপাড়া কবরস্থান মাঠে জানাযা শেষে রাষ্ট্রীয় মর্যাদায় ঘুনিপাড়া কবরস্থানে দাফন করা হয়।


নিহতের কফিনে সালাম প্রদর্শন করেন উপজেলা নির্বাহী অফিসার সৈয়দ ফয়েজুল ইসলাম এ সময় উপস্থিত ছিলেন সলিমাবাদ বীর মুক্তিযোদ্ধা গন্যমান্য ব্যক্তিবর্গ আরও উপস্থিত ছিলেন নাগরপুর থানা ও জেলা পুলিশ বাহিনীর সদস্যবৃন্দ।উল্লেখ্য, মুক্তিযোদ্ধা আলহাজ্ব গোলাম মোস্তফা খান আজ শুক্রবার ১২ জুন ভোর ৪ঃ৩০ মিনিটের সময় নিজ বাসা (ঢাকা) হৃদযন্ত্রের ক্রিয়া বন্ধ হয়ে মৃত্যুবরণ করেন। (ইন্নালিল্লাহি ওয়া ইন্না ইলাইহি রাজিউন)।মরহুম বীরমুক্তিযোদ্ধা গোলাম মোস্তফা খান স্ত্রী,দুই ছেলে, এক মেয়ে, ও বহু আত্নীয় ও শুভাকাঙ্ক্ষী রেখে গেছেন।

চৌগাছার পাশাপোল-দশপাখিয়া সড়কটির বেহাল দশা, দেখার কেউ নেই

চৌগাছার পাশাপোল-দশপাখিয়া সড়কটির বেহাল দশা, দেখার কেউ নেই



 স্টাফ  রিপোর্টারঃ 
 যশোর জেলার  চৌগাছা উপজেলার পাশাপোল - দশপাখিয়া  সড়কটি এখন চলাচলের সম্পূর্ণ অনুপযোগী ।  অতিসম্প্রতি সংস্কারের কাজ হবার কথা ছিলো বলে গ্রামবাসীর ভিতর গুনজন আছে কিন্তু তার সফলতার মুখে এখন না দেখায় হতাশ হয়েছেন।  সরেজমিনে দেখা যায় গত ১২ বছরের অধিক সময়ের ব্যবধানে এ সড়কটির বিভিন্ন স্থানে ছলিং কাঁদায় পরিনত হয়েছে।

 দেখে বোঝার উপায় নেই যে এটা ছলিং রাস্তা। ফলে চলাচলের অনুপযোগী হয়ে পড়েছে। যে কারণে  ক্ষতিগ্রস্ত হচ্ছে এলাকার কৃষক, ব্যবসায়ী ও সকল পেশাজীবী মানুষ। এছাড়া মুমূর্ষু রোগী, গর্ভবতী মা, শিশুকে উন্নত চিকিৎসার জন্য জরুরি ভাবে চৌগাছা, ঝিকরগাছা ও যশোর বা দেশের অন্য কোথাও নিতে এ সড়কটির জন্য দারুণ ভাবে ভোগান্তির শিকার হচ্ছে জন সাধারণ।এ-ই সড়ক টির ওপর প্রান্তে পাশাপোল আমজামতলা মডেল কলেজ , পাশাপোল সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়, শহীদ মশিয়ূর রহমান প্রতিবন্ধী স্কুল সহ পাশাপোল বাজার থাকার কারণে প্রতিদিন হাজার হাজার মানুষের যাতায়াত করতে বাধ্য হতে হয়।
দশপাখিয়া ও পাশাপোল দুটি গ্রামের হাজার হাজার মানুষের চলাচলের এক মাত্র সড়কটি চলাচলের অনুপযোগী হয়ে পড়ায় দারুণ ভাবে ভোগান্তির শিকার হচ্ছেন এ এলাকার মানুষ। দশপাখিয়া থেকে পাশাপোল বাজার পর্যন্ত ১.৫ কিলোমিটার সড়কটি বিভিন্ন স্থানে ভেঙ্গে একেবারেই নষ্ট হয়ে গেছে।  পাশাপোল বাজার পর্যন্ত ১.৫ কিলোমিটার রাস্তার উপর থেকে বিভিন্ন স্থানে ছলিং উঠে গিয়ে সড়ক জুড়ে বড় বড় গর্তের সৃষ্টি হয়েছে। ভারী যানবাহন চলাচল বন্ধের উপক্রম হয়ে পড়েছে। 
পাশাপোল  গ্রামের একাধিক ভুক্তভোগীর সাথে কথা বলে জানা যায়  সড়কটির পাশাপোল গ্রামের মাঝের পাড়া এলাকার অবস্থা খুবই খারাব। পাশাপোল গ্রামবাসী জানায়



 যে বেহালদশা তাতে মনে হয়না যে ওই সড়কের ওপর দিয়ে আছে যাতায়াত করি কিন্তু আর কোন উপায় না পেয়ে যেতে বাধ্য হতে হচ্ছে।   এ সড়কটি সংস্কার না হওয়ার কারণে ছোট গর্তগুলো বড় হয়ে গেছে। যে কারণে এ সড়কে চলাচল কারী সকল যানবাহন যান্ত্রিকভাবে ক্ষতিগ্রস্ত হচ্ছে। অপরদিকে, ঘটছে দুর্ঘটনা। বাড়ছে মৃত্যু আর পঙ্গুত্বের সংখ্যা। ফলে ক্ষতিগ্রস্ত হচ্ছে এলাকার কৃষক, ব্যবসায়ী ও পেশাজীবী মানুষ। এছাড়া এ এলাকার কোন মুমূর্ষু রোগী, গর্ভবতী মা, শিশুকে জরুরি ভাবে যশোর বা দেশের অন্য কোথাও উন্নত চিকিৎসার জন্য নেয়া কষ্টসাধ্য হয়ে পড়েছে। সড়কটির এমন বেহাল দশা যে, যানবাহনে উঠলে জীবন নিয়ে যাত্রীরা থাকে রীতিমত শঙ্কিত।
নাম না প্রকাম করার শর্তে একাধিক ব্যক্তি জানান  গত ৩/৪ বছর ধরে সাধারণ 
মানুষ শুধু শোনে যে রাস্তাটির টেন্ডার হয়ে গেছে কিন্তুু  বিগত বছরে কোন কাজ শুরু হয়নি সাধারণ মানুষ রাস্তায় চলাচলে করতে রীতিমত ভয় পায়। 
এমতাবস্থায় এলাকাবাসীর দাবি কর্তৃপক্ষ যেন দ্রুত রাস্তা টির সংস্কারের কাজ করে যাতায়াতের উপযোগী করেন।

মাধবপুরে ঢাকা-সিলেট মহাসড়কে কাভার ভ্যান ও পিকাপ ভ্যানের মুখোমুখি সংঘর্ষ

মাধবপুরে ঢাকা-সিলেট মহাসড়কে  কাভার ভ্যান ও পিকাপ ভ্যানের মুখোমুখি  সংঘর্ষ




লিটন পাঠান হবিগঞ্জ জেলা প্রতিনিধি

হবিগঞ্জের মাধবপুরে ঢাকা-সিলেট মহাসড়কে কাবার ভ্যান ও পিকাপ ভ্যানের মুখোমুখি  সংঘর্ষে ৫ জন আহত হয়েছে। এর মধ্য ৩ জনের অবস্থা আশঙ্কা জনক থাকায় বি-বাড়িয়া মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে প্রেরন করা হয়েছে।

শুক্রবার (১২-জুন) সকাল ১১ টার দিকে ঢাকা-সিলেট মহাসড়কে উপজেলার বেলঘর নামক স্থানে এ দূর্ঘটনাটি ঘটে।
স্থানীয়রা জানান,বেলঘর নামক স্থানে ঢাকা মুখি কাবার ভ্যানটি  নিয়ন্ত্রন হারালে সিলেট মুখি একটি পিকাপ,

 ভ্যানটির সাথে মুখোমুখি  সংঘর্ষ বাধে, এতে ঘটনা স্থলে ৫ জন গুরুতর আহত হয়।পরে আহতদের উদ্ধার করে মাধবপুর উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে নিয়ে গেলে ৫ জনের মধ্য ৩ জনের অবস্থা আশঙ্কা জনক থাকায় কর্তব্যরত,

 চিকিৎসক তাদেরকে বি-বাড়িয়া, মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে প্রেরন করে। আহতরা হলেন,ব্রহ্মনবাড়িয়া জেলার সরাইলের জাহির মিয়া (৪৫) ও হান্নান মিয়া (৪৪) আর সিলেটের জৈন্তাপুরের ইমন মিয়া (২০) আর,

 দক্ষিণ সুরমার মিজানুর রহমান (৩০), ফায়েজ মিয়া (৫০) শায়েস্তাগঞ্জ হাইওয়ে থানার ওসি তৌফিকুল ইসলাম তৌফিক ঘটনার সত্যতা নিশ্চিত করেছেন।

শিবগঞ্জে করোনা রোগীর বাড়ি ও ডাক্তারের চেম্বার লকডাউন

শিবগঞ্জে করোনা রোগীর বাড়ি ও ডাক্তারের চেম্বার লকডাউন





শামিম উদ্দিন চাঁপাইনবাবগঞ্জ প্রতিনিধি :
চাঁপাইনবাবগঞ্জের শিবগঞ্জে এক করোনা রোগীর বাড়ি ও স্বনামধন্য ডাক্তারের চেম্বার লকডাউন করা হয়েছে। ১১ জুন বৃহস্পতিবার সকালে উক্ত রোগীর বাড়ি এবং সেই ডাক্তারের চেম্বার লকডাউন করা হয়। রোগীটি শিবগঞ্জ পৌর - এলাকার ৫ নং ওয়ার্ডের বাজার সংলগ্ন মাষ্টারপাড়া গ্রামের জয়দেব দাসের ছেলে সুমন কুমার দাস (৩০)। তিনি শিবগঞ্জ মহিলা ডিগ্রি কলেজের পশ্চিমে  পেট্রোল পাম্পের পাশে অবস্থিত শিবগঞ্জের স্বনামধন্য ডাক্তার কুশল কুমার ব্যান্ধ্যার চেম্বারে ল্যাব এসিস্ট্যান্ট হিসেবে কর্মরত ছিলেন। সেই চেম্বারটিও লকডাউন করা হয়েছে। 

প্রাপ্ত তথ্যের ভিত্তিতে জানা গেছে, রোগীটি গত ৪ জুন বৃহস্পতিবার শিবগঞ্জ ডিগ্রি কলেজে করোনা টেস্টের জন্য নমুনা সংগ্রহ করান। নমুনা সংগ্রহের পর শিবগঞ্জ উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সের মাধ্যমে তার নমুনা ঢাকায় প্রেরণ করা হয়। নমুনা সংগ্রহের ৬ দিন পর ৭ম দিনে অর্থাৎ ১০ জুন বুধবার তার রেজাল্ট পজিটিভ আসে। বিষয়টি জানাজানি হলে উপজেলা প্রশাসনের হস্তক্ষেপে ১১ জুন বৃহস্পতিবার সকালে রোগীর বাড়ি ও সেই চেম্বারটি লকডাউন করা হয়। এসময় উপস্থিত ছিলেন নব্য যোগদানকারী উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা জনাব মোঃ সাকিব আল রাব্বি, উপজেলা সমাজসেবা কর্মকর্তা কাঞ্চন কুমার দাস, উপজেলার এক ইঞ্জিনিয়ারসহ স্থানীয় গণ্যমান্য ব্যক্তিবর্গ।
শিবগঞ্জ উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সের টি এইচ ও ডাক্তার সায়েরা বানুর সাথে মুঠোফোনে যোগাযোগ করা হলে তিনি বিষয়টির সত্যতা নিশ্চিত করেন। 

স্থানীয় কয়েকজনের সাথে কথা বললে তারা জানান, আমরা খুবই ভীত হয়ে পড়েছি। কেননা তার নমুনা ৬/৭ দিন আগে পাঠানো হয়েছিল কিন্তু রেজাল্ট হলো আজ। গত কয়েকদিনে সুমন এবং তার পরিবারের লোকজন বিভিন্ন জায়গায় ঘুরাঘুরি করেছে, অনেকের সাথে মিশেছে। জানিনা আমাদের এবং আশেপাশের এলাকাগুলোর মানুষের কী অবস্থা হবে। এইভাবে নমুনা প্রেরণের সপ্তাহ খানেক পর রেজাল্ট আসলে এ মরণঘাতী করোনা ভাইরাসের প্রাদুর্ভাব কমবে কেমন করে। এ নিয়ে আমরা এলাকাবাসী আশংকার মধ্যে দিনযাপন করছি।

ঘূর্ণিঝড় আম্পানে ক্ষতিগ্রস্তদের মাঝে কোস্ট ট্রাস্টের ত্রান বিতরন

ঘূর্ণিঝড় আম্পানে ক্ষতিগ্রস্তদের মাঝে কোস্ট ট্রাস্টের ত্রান বিতরন





মোঃ আওলাদ হোসেন 
জেলা প্রতিনিধি, ভোলা, দৌলতখান


গতকাল ১১ জুন সারাদিন ছিলো বৃষ্টি । সকাল ৭টায় ভোলা সদরের অফিসে গাড়িতে ত্রাণ সামগ্রী নিয়ে প্রস্তুত কোস্টট্রাস্টের কর্ম কর্তা বৃন্দ। কোস্ট ট্রাস্টের এ্যাসিস্ট্যান্ট ডিরেক্টর জহিরুল ইসলাম বলেন,দুটি টীম একটি ভেদুরিয়া ও একটি রাজাপুর ইউনিয়নে জন্য। আমাদের বেশিরভাগ কর্মীরা খুবই প্রো- এ্যাকটিভ বৃষ্টিতেও তর সইছিলোনা মাঠে যাবার জন্য রেইনকোট নিয়ে নেমে পড়লেন । আমরা কয়েকটি স্টেপ নিলাম ১. প্রথমে আমরা চেয়ারম্যান ও মেম্বরদের তাদের পছন্দ মতো একটি বালিতি খুলে আমরা মালামালের হিসাব দিলাম ও কোনটির কাজ কি তা জানালাম তাদের কাছে আমাদের স্বচ্ছতা ও জবাবদিহীতা প্রকাশ করলাম। এরপরে সকল সদস্যদেরকে আমরা জনে জনে বুঝিয়ে দিলাম তারা ১৩টি সাবান দিয়ে যেভাবে পরিস্কার পরিচ্ছন্ন থাকবে। বালতিটিতে  পানি সংরক্ষণ ও ব্যবহারের পদ্ধতি জানালাম। ডিটারজেন দিয়ে কেন সব কিছু  ধুতে হবে তা বুঝিয়ে দিলাম। এর পরে মাস্ক পড়ার নিয়ম বলে দিলাম ও বাহিরে বের হলেই মাস্ক পড়বেন সে অঙ্গীকার নিলাম । এর পরে নগদ টাকা হাতে দিয়ে গুনে নিতে বল্লাম দু’একজনকে টাকা দিয়ে কী করবেন তা জানলাম এবং পরামর্শ দিলাম । ভেদুরিয় টীম ছিলাম, সোহেল মাহমুদ, জাহাজ্জুত হোসেন, মনিরুজ্জামান, শাওন, নুরুল ইসলাম, আমি ও স্থানীয় সরকার প্রতিনিধিবৃন্দ । রাজাপুর টিমে ছিলেন মিজানুর রহমান, সেলিম মিয়া, সিরাজুল ইসলাম, দেবাষীশ, সোলাইমান মিয়া ও অন্যান্যরা ।ধন্যবাদ টিমের সবাইকে বিশেষ করে ভেদুরিয়া চেয়ারম্যান, সচিব ও সদস্যবৃন্দ ও যারা সুবিধাভূগী ছিলেন । 
ঘুর্ণঝড় আম্পানে ক্ষতিগ্রস্থদের ত্রাণ সামগ্রীর মধ্যে রয়েছে নগদ তিন হাজার টাকা, করোনা মোকাবেলা করার জন্য উপকরণ; সাবান ১৩টি, ডিটারজেন পাউডার ২টি (১কেজি), সার্জিক্যাল মাস্ক ৫০পিচ, মগ ১টি ও পানির যার বালিতি ১টি ও ৮পিচ সূঁতি কাপড় যা নারীরা মাসিক কালীন সময় ব্যবহার করতে পারবে ।

দিনাজপুর জেলা করোনা প্রতিরোধ কমিটির উদ্যোগে শহরের ১২টি ওয়ার্ডে সচেতনতা পথসভা অনুষ্ঠিত

দিনাজপুর জেলা করোনা প্রতিরোধ কমিটির উদ্যোগে শহরের ১২টি ওয়ার্ডে সচেতনতা পথসভা অনুষ্ঠিত





দিনাজপুর প্রতিনিধি॥ দিনাজপুর জেলা করোনা প্রতিরোধ কমিটির উদ্যোগে শহরের মানুষকে সচেতন করার লক্ষ্যে পৌর এলাকার ১২টি ওয়ার্ডে  পৃথক পৃথক সচেতনতা পথসভা অনুষ্ঠিত হয়েছে। ১২ জুন শুক্রবার সকালে এসব পথসভা অনুষ্ঠিত হয়। দিনাজপুরে শহরের মডার্ণ মোড়ে অনুষ্ঠিত এ সচেতনতা পথসভায় সভাপতির বক্তব্য রাখেন জেলা করোনা প্রতিরোধ কমিটির আহবায়ক ও দিনাজপুর জেলা প্রশাসক মোঃ মাহমুদুল আলম। আরো বক্তব্য রাখেন, করোনা প্রতিরোধ কমিটির সদস্য ও পুলিশ সুপার মোঃ আনোয়ার হোসেন। সভা বাস্তবায়নে সার্বিক সহযোগিতা করে জেলা আওয়ামী লীগের করোনা প্রতিরোধ সাব কমিটি। এ কমিটির সদস্যদের মধ্যে উপস্থিত ছিলেন, জেলা আওয়ামী লীগের সহ-সভাপতি আলতাফুজ্জামান মিতা, হাজী সাইফুল ইসলাম এ্যাডভোকেট, বঙ্গবন্ধু শিশু কিশোর মেলার কেন্দ্রীয় কমিটির সিনিয়র সাধারণ সম্পাদক ও মুখপাত্র মনিরুজ্জামান জুয়েল, দিনাজপুর জেলা বঙ্গবন্ধু শিশু কিশোর মেলার ভারপ্রাপ্ত সভাপতি শাহজাহান নভেল, যুবলীগ নেতা নাহিদ আলম রানা, জেলা তাঁতী লীগের আহবায়ক জাহাঙ্গীর আলম  আলাল, জেলা যুবলীগের সাবেক সহ-সম্পাদক খলিলুল্লাহ আজাদ মিল্টন, তাঁতী লীগ নেতা শান্তু, সুব্রত চক্রবর্তী  পাপ্পা প্রমূখ। 
সভায় বক্তারা বলেন, করোনা একটি প্রাণঘাতি দূর্যোগ। এ দূর্যোগে সবাইকে সচেতন হবার কোন বিকল্প নেই। নিতান্তই প্রয়োজন ছাড়া বাড়ির বাহিরে বের না হওয়াই ভালো। আর বের হলেও মুখে মাক্স, হ্যান্ডগ্লোভসসহ প্রয়োজনীয় সুরক্ষা সামগ্রী ব্যবহার করতে হবে। মাক্স ছাড়া কোন অবস্থাতেই বাড়ির বাহিরে বের হওয়া যাবে না। চোখ, নাক, মুখ দিয়েই যেহেতু করোনা প্রবেশ করে, সেহেতু মাক্স ব্যবহারের মাধ্যমে আমাদের নিজেদের সুরক্ষা নিজেদেরই করতে হবে। এক্ষেত্রে একটু অবহেলা ক্ষতির কারন হয়ে দাঁড়াতে পারে। তাই সবাইকে সচেতন হয়ে কাজ করতে হবে।

করোনার আপডেট

করোনার আপডেট







নিউজ ডেস্কঃ (১২ জুন) গত ২৪ ঘণ্টায় দেশে নতুন করে করোনা ভাইরাসে আক্রান্তঃ ৩,৪৭১ জন;

মৃত্যুবরণ করেছেনঃ ৪৬ জন এবং

সুস্থ হয়েছেনঃ ৫০২ জন

নমুনা পরীক্ষা করা হয়ঃ ১৫,৯৯০ জনের

মোট আক্রান্ত ৮১,৫২৩ জন, মোট মৃত্যু ১০৯৫ জন এবং মোট সুস্থ হয়েছেন ১৭,২৫০ জন।

তথ্যসূত্রঃ আইইডিসিআর ও স্বাস্থ্য মন্ত্রনালয়

গুজব ছড়াবেন না।

আতঙ্কিত নয়, সচেতনতাই পারে করোনা মোকাবেলা করতে।


শ্রমিকরা সুদিনে মালিকদের মুনাফা এনে দিয়েছে আজ দেশের এই দুর্দিনে তাদের ছাটাই না করার আহবান

শ্রমিকরা সুদিনে মালিকদের মুনাফা এনে দিয়েছে আজ দেশের এই দুর্দিনে তাদের ছাটাই না করার আহবান





দাইয়ানুর রহমান মিষ্টারনুরঃ

শ্রমিকরা সুদিনে মালিকদের মুনাফা এনে দিয়েছে, আজ দেশের এই দুর্দিনে তাদের  ছাটাই না করার আহ্বান জানাই। ছাটাইয়ের মতো অসন্তোষ উদ্রেককারী সিদ্ধান্তের খবর মরার ওপর খাড়ার ঘা'র মতো অবস্থা হবে। বিজিএমই এ সহ সংশ্লিষ্টদের বিষয়টি মানবিক দিক বিবেচনায় নিয়ে সমন্বয়ের আহ্বান জানাই। শুধু ব্যবসা নয়, অসহায় মানুষগুলোর প্রতি সহমর্মি হয়ে ছাটাই না করার জন্যও মালিকদের প্রতি অনুরোধ। 

গণপরিবহনে দূরপাল্লায় অভিযোগ না থাকলেও শহর এলাকায় ভাড়া বৃদ্ধির কিছু অভিযোগ পাওয়া যাচ্ছে, মালিক শ্রমিকদের পাশাপাশি যাত্রীদেরও এবিষয়ে সচেতন হতে হবে। সকলকে স্বাস্থ্যবিধি মেনে এবং  যাত্রীদের থেকে বাড়তি ভাড়া না নিতে মালিক শ্রমিকদের প্রতি আহ্বান রইলো।

প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার নেতৃত্বে ঘরে ঘরে সুরক্ষা ও সচেতনতার দুর্গ গড়ে তুলতে হবে, ইনশাআল্লাহ এ সংকট মোকাবিলা করে আমরা চিরচেনা সজীবতায় ফিরে আসবো এবং সংকটের মেঘ অচিরেই কেটে যাবে সবার সম্মিলিত প্রচেষ্টায়। 

করোনা এবং অন্যান্য রোগীদের সেবায় মানবিক হোন, ইতিমধ্যে চিকিৎসা না পেয়ে হাসপাতাল ঘুরে ঘুরে অনেকের মৃত্যুবরণের মতো ঘটনাও ঘটেছে, তাই হাসপাতাল কর্তৃপক্ষকে মানবিক আচরন ও সহানুভূতিশীল হতে হবে।

----- বাংলাদেশ আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক এবং সড়ক পরিবহন ও সেতুমন্ত্রী অবাইদুল কাদের
জানিয়েছেন।

কুড়িগ্রামের ফুলবাড়ীতে সেপটিক ট্যাংকে পড়ে মৃত্যু ২

কুড়িগ্রামের ফুলবাড়ীতে সেপটিক ট্যাংকে পড়ে মৃত্যু ২




 

কৃষ্ণ সরকার পীযূষ, কুড়িগ্রাম জেলা প্রতিনিধিঃ আজ ১২ জুন শুক্রবার সকাল ৯ টায়  ফুলবাড়ী উপজেলার গংগারহাট বাজার সংলগ্ন আউয়াল মাস্টারের বাড়ীর কাজ করতে নেমে এই  মর্মান্তিক ঘটনা ঘটে।

এই ঘটনায় বেরাগুটির আউয়ালের ছেলে আল আমিন(২৫),গংগার হাট বাজারের সাহেব আলীর ছেলে সুজন মিয়া(৩৫) মৃত্যুবরণ করেন এবং  ফায়ার সার্ভিস কর্মী আবুল হোসেনকে রংপুর মেডিকেলে পাঠানো হয়।

উল্লেখ্য এলাকার সূত্রে জানা যায়,  সকাল সাড়ে ৮ টার দিকে সেপটিক ট্যাংকের কাঠ খুলতে নামে ট্যাংকের ভিতর পড়ে যান আল আমিন,তাকে উদ্ধার করতে রশি নিয়ে ঢুকে পড়েন সুজন মিয়া,কিন্তু সুজনের রশি ট্যাংকে ভিতরে খুলে পড়ে যাওয়ায় দুজনেই উঠে আসতে ব্যর্থ হন। ফলে স্থানীয়রা নাগেশ্বরীরর ফায়ার সার্ভিসকে খবর দিলে ফায়ার সার্ভিস কর্মীরা এসে তাদের মৃত দেহ উদ্ধার করেন।

ফায়ার সার্ভিস স্টর অফিসার ইমনের নেতৃত্বে এ উদ্ধার কাজ চালানো হয়। স্টর অফিসার ইমন তাদের মৃত খবর নিশ্চিত করেন।

শৈলকুপা উপজেলাই করোনায় মৃত্যু ১

শৈলকুপা উপজেলাই করোনায় মৃত্যু ১




সম্রাট হোসেন শৈলকুপা উপজেলা  (ঝিনাইদহ)প্রতিনিধিঃ গত ৫ দীন আগে শৈলকুপা উপজেলার কবীর পুর এলাকায়  কৃষ্ণ গোপাল (কেতো সাহা) নামের এক ব্যাক্তি মারা যায়। পরে তার নমুনা সংগ্রহ করে খুলনা ল্যাবে পাঠানো হলে আজ সকলে ঝিনাইদহ জেলা সিভিল সার্জন জানাই যে, কেতো সাহার করোনা পজেটিভ ছিলো। উল্লেখ্য এইটাই শৈলকুপায় করোনায় প্রথম মৃত্যু। এর আগে আরাও এক জন মারা যায় তবে সে ঢাকায় থাকতো এবং ঢাকাতেই আক্রান্ত হয়ে ঢাকা কুর্মিটোলা জেনারেল হাসপাতালে মারা যায়।তবে তার লাশ শৈলকুপা উপজেলার কাচেরকোল তার নিজ গ্রামে পারিবারিক গোরস্থানে দাফন করা হয়।

দিনাজপুরে নতুন করে করোনায় আক্রান্ত ২১

দিনাজপুরে নতুন করে করোনায় আক্রান্ত ২১






 দিনাজপুর প্রতিনিধি : গত ২৪ ঘন্টায় নতুন করে আরো ২১ জন করোনায় আক্রান্তসহ দিনাজপুরে আক্রান্তের সংখ্যা দাঁড়িয়েছে ৩৮২জন। এ পর্যন্ত জেলায়  ১১৫ জন সুস্থ হয়ে বাড়ী ফিরেছেন এবং ৬ জন করোনা আক্রান্ত হয়ে মৃত্যুবরন করেছেন। 

দিনাজপুর সিভিল সার্জন ডা. মো. আব্দুল কুদ্দুছ বৃহস্পতিবার (১১ জুন) রাত পৌনে ১০টায় জানান, গত ২৪ ঘন্টায় (বৃহস্পতিবার) জেলায় নতুন আরো ২১ জন করোনায় আক্রান্ত হয়েছে। এ নিয়ে জেলায় মোট করোনায় আক্রান্ত রোগির সংখ্যা দাড়ালো ৩৮২ জনে। এছাড়া নতুন আরো ৬ জনসহ এ পর্যন্ত ১১৫ জন সুস্থ হয়েছেন এবং  ৬ জনের মৃত্যু হয়েছে। আক্রান্ত ৩৮২ জনের মধ্যে পুরুষ ২৭২ জন, নারী ৯৩ জন ও শিশু ১৭ জন। 

নতুন আক্রান্ত ২১ জনের মধ্যে খানসামা উপজেলায় ১০ জন, সদরে ৪ জন, চিরিরবন্দরে ৪ জন, বিরলে দুইজন ও বিরামপুর উজেলায় একজন। আর সুস্থ ৬ জনের মধ্যে দিনাজপুর সদর উপজেলায় ৩ জন, বীরগঞ্জে দুইজন ও নবাবগঞ্জ উপজেলায় একজন।

সিভিল সার্জন জানান, করোনায় আক্রান্ত ৩৮২ জনের মধ্যে দিনাজপুর সদর উপজেলায় ১১২ জন (মৃত একজনসহ), কাহারোলে ১৩ জন, বিরলে ৩৫ জন, বোচাগঞ্জে ১০ জন (মৃত একজনসহ), পার্বতীপুরে ৩১ জন (একজন মৃতসহ), ফুলবাড়ীতে ১৪ জন, নবাবগঞ্জে ২৫ জন, হাকিমপুরে ৫ জন, খানসামায় ২২ জন, বিরামপুরে ৩২ জন, ঘোড়াঘাটে ৩১ জন, চিরিরবন্দরে ৩৪ জন (মৃত দুইজনসহ) ও বীরগঞ্জ উপজেলায় ১৮ জন।

অপরদিকে সুস্থ ১১৫ জনের মধ্যে দিনাজপুর সদর উপজেলায় ২৭ জন, ফুলকাড়ীতে একজন, নবাবগঞ্জে ১২ জন, পার্বতীপুরে ১৩ জন, কাহারোলে ৭ জন, বোচাগঞ্জে ৫ জন, হাকিমপুরে দুইজন, ঘোড়াঘাটে ৪ জন,  বিরামপুরে ৩ জন, বিরলে ২০ জন, বীরগঞ্জে ১৪ জন, খানসামায় ৬ জন ও চিরিরবন্দর উপজেলায় একজন। এছাড়া বর্তমানে হোম আইসোলেশনে রয়েছেন ২২১ জন, প্রাতিষ্ঠানিক আইসোলেশনে রয়েছেন ২৭ জন, হাসপাতালে ভর্তি রয়েছেন ১৩ জন ও মৃত্যুবরণ করেছেন ৬ জন।
সিভিল সার্জন জানান, বৃহস্পতিবার মোট ৮৭টি নমুনার ফলাফল পাওয়া গেছে যার মধ্যে ২১টি নমুনার ফলাফল পজিটিভ, দুইটি নমুনার ফলাফল ফলোআপ পজিটিভ ও বাকী ৬৪টি নমুনার ফলাফল নেগেটিভ এসেছে। আর এ পর্যন্ত ৪৯৭৪টি নমুনা পরীক্ষার জন্য ল্যাবে পাঠানো হয়েছে। এর মধ্যে ৪৫৯০টি নমুনার ফলাফল পাওয়া গেছে। এছাড়া বৃহস্পতিবার ২১৩টি নমুনা পরীক্ষার জন্য দিনাজপুরে ল্যাবে পাঠানো হয়েছে। 

সিভিল সার্জন ডা: মো: আব্দুল কুদ্দুছ আরো জানান, গত ২৪ ঘন্টায় ১৩৭ জনসহ এ পর্যন্ত ১০ হাজার ৬৬৭ জনকে হোম কোয়ারেন্টইনে পাঠানো হয়েছে। এ পর্যন্ত হোম কোয়ারেন্টইন হতে ছাড় পেয়েছেন ৭ হাজার ৯৫৮ জন। বর্তমানে হোম কোয়ারেন্টইনে রয়েছে ২ হাজার ৭০৯ জন। এছাড়া প্রাতিষ্ঠানিক কোয়ারেন্টইনে পাঠানো হয়েছে ৩২১ জনকে এবং প্রাতিষ্ঠানিক কোয়ারেন্টইন হতে ছাড় পেয়েছেন ৩০৩ জন ও বর্তমানে ১৮ জন প্রাতিষ্ঠানিক কোয়ারেন্টইনে রয়েছে।

নোবিপ্রবি উপাচার্যের এক বছর পূর্তিতে নীলদলের শুভেচ্ছা

নোবিপ্রবি উপাচার্যের এক বছর পূর্তিতে নীলদলের শুভেচ্ছা






নোবিপ্রবি প্রতিনিধিঃ
নোয়াখালী বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়ের মাননীয় উপাচার্য হিসেবে অধ্যাপক ড. মো. দিদার-উল-আলমের একবছর পূর্তিতে নোয়াখালী বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়ের বঙ্গবন্ধুর আদর্শ, বাঙালি জাতীয়তাবাদ ও মহান মুক্তিযুদ্ধের চেতনায় বিশ্বাসী, অসাম্প্রদায়িক শিক্ষা দর্শনে লালিত প্রগতিশীল শিক্ষকদের সংগঠন নীল দল অভিনন্দন ও শুভেচ্ছা জানিয়েছে।
শুক্রবার(১২ জুন) নোবিপ্রবি নীলদলের সভাপতি ড. ফিরোজ আহমেদ ও সাধারণ সম্পাদক বিপ্লব মল্লিক স্বাক্ষরিত শুভেচ্ছা বার্তায় বলা হয়, অধ্যাপক ড. মো. দিদার-উল-আলম স্যারের মত একজন নিরহঙ্কার, নিভৃতচারী, মেধাবী, নেতৃত্বের গুণাবলি সম্পন্ন যোগ্য ব্যক্তিকে উপাচার্য হিসেবে পদায়ন করায় বঙ্গবন্ধুর সুযোগ্য কন্যা মাননীয় প্রধানমন্ত্রী দেশরত্ন শেখ হাসিনাকে নীল দল, নোবিপ্রবি পরিবারের পক্ষ থেকে অসংখ্য ধন্যবাদ ও কৃতজ্ঞতা জ্ঞাপন করছি।
বিগত এক বৎসরকালে মাননীয় উপাচার্য স্যার বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রশাসনিক গতিশীলতা, সুষ্ঠু উন্নয়নমূলক কর্মকাণ্ড পরিচালনা ও শিক্ষার সুষ্ঠু পরিবেশসহ সকল ক্ষেত্রে দক্ষতার পরিচয় দিয়েছেন। একই সাথে শিক্ষক, কর্মকর্তা, কর্মচারী ও শিক্ষার্থীসহ সকলকে স্যার মানবিক দক্ষতায় মুগ্ধ করেছেন। আমরা স্যারের প্রতি কৃতজ্ঞতা জ্ঞাপন করছি। 
আমরা দৃঢ়ভাবে বিশ্বাস করি তিনি তাঁর সততা, যোগ্যতা, প্রজ্ঞা ও গতিশীল নেতৃত্ব দিয়ে নোয়াখালী বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়ের অগ্রগতিকে উত্তরোত্তর ত্বরান্বিত করতে সক্ষম হবেন। নীল দল, নোবিপ্রবি পরিবার তার সুস্বাস্থ্য, দীর্ঘায়ু ও উত্তরোত্তর সাফল্য কামনা করছে।

ঝিনাইদাহ কালীগঞ্জে ৩০ ঘন্টার ব্যবধানে ৩ টি বাল্যবিবাহ বন্ধ জরিমানা আদায়

ঝিনাইদাহ কালীগঞ্জে  ৩০ ঘন্টার ব্যবধানে ৩ টি বাল্যবিবাহ বন্ধ জরিমানা আদায়





খোন্দকার আব্দুল্লাহ বাশার, 
ঝিনাইদহ জেলা প্রতিনিধি




৩০ ঘন্টার ব্যবধানে ঝিনাইদহ কালীগঞ্জে ৩ টি বাল্যবিবাহ বন্ধ করেছেন ভ্রাম্যমান আদালত। এ সময় বাল্যবিয়ে দেয়ার অপরাধে মোট ৪০ হাজার টাকা জরিমানা আদায় করা হয়। কালীগঞ্জ সহকারী কমিশনার (ভূমি) ও নির্বাহী ম্যাজিষ্ট্রেট ভুপালি রানী সরকার এ আদালত পরিচালনা করেন। 
সহকারী কমিশনার ভ’মি ভুপালি রানী সরকার জানান, বাল্যবিয়ে দেওয়া হচ্ছে গোপন সংবাদ পেয়ে বুধবার দুপুর থেকে বৃহস্পতিবার বিকেল পর্যন্ত উপজেলার পৃথক ৩ টি গ্রামে অভিযান চালিয়ে বাল্যবিয়ে বন্ধসহ জরিমানা করেন। তিনি জানান, বুধবার দুপুরে উপজেলার কোলা ইউনিয়নের রাকড়া গ্রামের ইকবাল হোসেনের মেয়ে (১৫) বাল্যবিয়ে দিচ্ছেন খবরে অভিযান চালান। এ সময় বর যশোরের বাঘাপাড়া উপজেলার জহরপুর  গ্রামের রাজু আহম্মেদ দৌড়ে পালিয়ে রক্ষা পেলেও মেয়ের বাবাকে ৫ হাজার টাকা জরিমানা করা হয়। পরে বিকেলে উপজেলার মালিয়াট ইউনিয়নের বেথুলি গ্রামের সাইফুল ইসলামের মেয়ে (১৫) এর সাথে মহেশপুর উপজেলার সড়াতলার আলাউদ্দীনের ছেলে নাজমুল ইসলামের বাল্যবিয়ে দেয়ার আয়োজন চলাকালে অভিযান চালান। এ সময় উভয়পক্ষকে ১০ হাজার করে মোট ২০ হাজার টাকা জরিমানা আদায় করেন। এরপর বৃহস্পতিবার বিকেলে বাল্যবিয়ের অপরাধে বর রায়গ্রাম ইউনিয়নের দয়াপুর গ্রামের আলমগীর হোসেনের ছেলে আজগর আলীকে ১৫ হাজার টাকা জরিমানা করেন। 
বিগত ৩০ ঘন্টার ব্যবধানে ৩ টি বাল্যবিয়ে বন্ধসহ মোট ৪০ হাজার টাকা জরিমানা আদায় করেন বলে জানান এই নির্বাহী ম্যজিষ্ট্রেট।

ময়মনসিংহের নান্দাইলে বিষ পানে ব্যবসায়ীর আত্মহত্যা

ময়মনসিংহের নান্দাইলে বিষ পানে ব্যবসায়ীর আত্মহত্যা




স্টাফ রিপোর্টার, মিজানুর রহমান ইমনঃ

ময়মনসিংহে নান্দাইল উপজেলার চন্ডীপাশা ইউনিয়নের ঘোষপালা গ্রামে আব্দুল বারেক নামের এক ব্যাক্তি (১১জুন) বৃহস্পতিবারে বিষ পানে আত্মহত্যা করেছে, এলাকাবাসী সূত্রে জানা যায়, বিষ পানে আত্মহত্যা করা ব্যাক্তি আব্দুল বারেক ঈশ্বগঞ্জ উপজেলার লক্ষীপুর বাজারের পাশে দীর্ঘদীন ধরে ব্যাবসা করত এবং তিনি সেখানেই বাস করতেন ।

এক সময় তিনি তার গ্রামের বাড়ি নান্দাইল উপজেলার ঘোষপালা গ্রামে জমি বিক্রি করতে আসলে তার পরিবারের লোকজন জমি বিক্রি করতে বাঁধা দেন, এক পর্যায়ে কথা কাটাকাটি হলে রাতের বেলা সবার চোখের আড়ালে বিষ পান করে আব্দুল বারেক আত্মহত্যা করেন ।

রাস্তার পাশে পড়ে থাকা বৃদ্ধাকে সুচিকিৎসার ব্যবস্থা করে দেন মেট্রোপলিটন পুলিশের

রাস্তার পাশে পড়ে থাকা বৃদ্ধাকে  সুচিকিৎসার ব্যবস্থা করে দেন  মেট্রোপলিটন পুলিশের







খোন্দকার আব্দুল্লাহ বাশার, ঢাকা থেকে ফিরেঃ



মানবতার আরেক নাম পুলিশ, মুজিব বর্ষের অঙ্গীকার, পুলিশ হবে জনতার। 
রাস্তার পাশে পড়ে থাকা বৃদ্ধার সহায়তায় এগিয়ে এলো না কেউ, উদ্ধার করে সুচিকিৎসার ব্যবস্থা করলো পুলিশ।

গাজীপুর মেট্রোপলিটনের হাড়িনাল বাজারের রাস্তার পাশে সংজ্ঞাহীন অবস্থায় দীর্ঘক্ষণ পড়েছিলেন এক অজ্ঞাতনামা বৃদ্ধা (৫৫)। অনেক সময় পড়ে থাকলেও করোনা ভাইরাস সংক্রমনের ভয়ে কেউই তার সহায়তায় এগিয়ে আসেনি।

 জাতীয় জরুরী সেবা ৯৯৯ থেকে জিএমপি’র সদর থানার অফিসার ইনচার্জকে বিষয়টি জানানো হলে তিনি তৎক্ষনাৎ এসআই ফিরোজকে  ফোর্সসহ ঘটনাস্থলে পাঠান।

ইতিমধ্যে গাজীপুর মেট্রোপলিটন পুলিশ কমিশনার জনাব মোঃ আনোয়ার হোসেন বিপিএম(বার), পিপিএম(বার) বিষয়টি অবগত হয়ে বৃদ্ধার সুচিকিৎসা নিশ্চিতকল্পে সংশ্লিষ্ট সকলকে নির্দেশনা প্রদান করেন।

নির্দেশনা পেয়ে পুলিশের উদ্ধারকারী দল তাৎক্ষনিক বৃদ্ধাকে টঙ্গী শহীদ আহসানউল্লাহ মাস্টার জেনারেল হাসপাতালে ভর্তি করে চিকিৎসার যাবতীয় ব্যবস্থা করে দেয়।

বুক রিভিউঃ "সাইক্লোন"- মুহাম্মদ জাফর ইকবাল

বুক রিভিউঃ "সাইক্লোন"- মুহাম্মদ জাফর ইকবাল




মুহাম্মদ জাফর ইকবাল স্যারের সাইক্লোন বইটি জীবন যুদ্ধে পরাজিত এক সাহসী বুদ্ধিমতি মেয়ে "নভেরা" কে উৎসর্গ করা হয়েছে। বইটিতে জীবনের উথান-পতন দেখানো হয়েছে। বইয়ের নানা রকম ঘটনা,বিভিন্ন দিকে গল্পের মোড়, যার জন্য আপনার বইটি শেষ না করে উঠতে ইচ্ছে করবে নাহ।



পৃথিবীর এক অন্যতম মধুর সম্পর্কের নাম ভাই বোনের সম্পর্ক। যতই বিপদ-আপদ আসুক ভাই-বোনকে কখনো ছেড়ে যেতে পারে নাহ। ভাই বোনের এমন এক মধুর সম্পর্ক নিয়েই লেখা হয়েছে "সাইক্লোন"।



বিজলী আর খোকন সমুদ্রের ধারের কাজল ডাঙ্গা নামের ছোট্ট এক চরের বাসিন্দা। বিজলী বড় আর খোকন ছোট। তাদের পরিবারের অবস্থা অসচ্ছল হওয়া সত্বেও তাদের মনে কোন দুঃখ ছিলো নাহ। বিজলীর পুরো জগৎ জুড়ে ছিলো খোকন। খোকনের ও একমাত্র আশার স্থল ছিলো বিজলী। কিন্তু একদিন সব ওলট-পালট হয়ে গেলো। যারিনা নামক সাইক্লোন এক রাতের মাঝে তাদের জীবন পালটে দিলো। সেদিনের সাইক্লোনে বিজলীর বাবা-মা সহ ঐ চরের  সবাই মারা যায়। কিন্তু ভাগ্যক্রমে বেঁচে যায় দুই ভাই বোন। তারপর তাদের উদ্ধার করে পাঠানো হয় হ্যাপি চাইল্ড অর্গানাইজেশনে। দুই ভাই বোন একজন আরেকজনকে ছাড়া থাকতে পারে নাহ। দুই ভাই-বোনকে একসাথে রাখাবে বলে প্রতিশ্রুতি দিয়ে নিয়ে আসে অর্গানাইজেশনটি। কিন্তু এনেই দুই ভাই-বোনকে আলাদা বিল্ডিংয়ে পাঠিয়ে দেওয়া হয়। যা মেনে নিতে পারে নাহ বিজলী ও খোকন। পরবর্তীতে বিজলীকে না জানিয়ে অর্গানাইজেশন খোকনকে একটি সন্তানহীন দম্পতির কাছে বিক্রি করে দেয় এবং খোকনকে হুমকি দেয়া হয় কাউকে বিজলীর কথা বললে বিজলীকে খুন করে ফেলবে। অর্গানাইজেশনে খোকনকে না পেয়ে বিজলী  দিশেহারা হয়ে পড়ে,ঘটিয়ে ফেলে বাড়াবাড়ি কান্ড। ফলে তাকে কারাগারে পাঠানো হয়। ওদিকে খোকন ধনী দম্পতির কাছে সন্তান স্নেহে দিন কাটাতে থাকে। পরবর্তীতে বিজলী কারাগার থেকে পালিয়ে যায়। সারা শহর জুড়ে খোকনকে খুঁজতে থাকে বিজলী।



এখন প্রশ্ন হলো, ঢাকা শহরের এতো মানুষের মধ্যে খোকনকে খুঁজে পাওয়া কি সম্ভব?? বিজলীই  বা কিভাবে একা বেঁচে থাকে এই নিষ্ঠুর নগরীতে যেখানে পদে পদে রয়েছে বিপদ? খোকনও কি মনে রাখে বিজলীকে? বিজলী কি শেষ পর্যন্ত তার ভাই খোকনকে খুঁজে পেয়েছিলো? এই উওরগুলো জানতে হলে আমাদেরকে "সাইক্লোন" বইটি পড়তে হবে।



আসমা আলী মীম 
২য় বর্ষ, মার্কেটিং বিভাগ 
জগন্নাথ বিশ্ববিদ্যালয়।

মাধবপুরে পুলিশের হাতে ২ ছিনতাইকারী আটক

মাধবপুরে পুলিশের হাতে ২ ছিনতাইকারী আটক






লিটন পাঠান হবিগঞ্জ জেলা প্রতিনিধি

 হবিগঞ্জের মাধবপুরে ২ জন ছিনতাইকারীকে আটক করে 
পুলিশের হাতে তুলে দিয়েছে জনতা। বৃহস্পতিবার (১১-জুন) রাত সাড়ে ১১.টার দিকে মাধবপুর উপজেলার বাগাসুরা ইউনিয়নের বাখরনগর,

 এলাকায় এক ব্যাক্তিকে বাড়ি যাওয়ার সময় ৩ ছিনতাইকারী ঝাপটে ধরে সবকিছু ছিনিয়ে নেয়ার চেষ্টা করে।এসময় সে চিৎকার করলে আশপাশের লোকজন ছুটে আসলে ছিনতাইকারীরা পালিয়ে যাওয়ার চেষ্টা করে এ সময়,

 জনতা ধাওয়া করে আব্দুল করিম (২০) ও আব্দুল হাসিম (২২) নামে দুই ছিনতাইকারীকে আটক করে। তবে তাদের সাথের কান্চন নামে আরেক ছিনতাইকারী পালিয়ে যেতে সক্ষম হয়। আটককৃত আব্দুল করিম মাধবপুর

 উপজেলার বাগাসুরা ইউনিয়নের রাধাপুর গ্রামের মৃত হারুনর রশীদ এর ছেলে এবং আব্দুল হাসিম শায়েস্তাগঞ্জ উপজেলার আলিপুর এলাকার মৃত খুরশিদ মিয়ার ছেলে। পরে জনতা তাদের গণপিটুনি দিয়ে পুলিশের হাতে,

 সোপর্দ করে। মাধবপুর থানার, এএসআই আতাউল গনি ঘটনার 
সত্যতা নিশ্চিত করে বলেন, খবর পেয়ে ঘটনাস্থলে গিয়ে দেখি জনতা তাদেরকে আটক করে বেধে রেখেছে। আমরা আটককৃত ২ ব্যাক্তিকে থানায় নিয়ে,

 যাচ্ছি তাদের বিরুদ্ধে আইনানুগ ব্যবস্থা, গ্রহণ করা হবে। উল্লেখ্য যে, এই এলাকায় প্রায়ই চুরি ডাকাতি বা ছিনতাইয়ের ঘটনা ঘটছে।

ব্যাক্তিগত আলাপচারিতা ও সংবাদ সাক্ষাৎকার

ব্যাক্তিগত আলাপচারিতা ও সংবাদ সাক্ষাৎকার




আমরা প্রতিনিয়ত নানা বিষয়ে কথা বলি। কাছের মানুষ হলে, পরিচিত হলে, আপন মানুষ হলে বিভিন্ন প্রসঙ্গে অনেক আলাপ করি। কিন্তু এই আলাপ কি সংবাদের উপাদান হতে পারে? হ্যাঁ অবশ্যই হতে পারে ব্যক্তিগত আলাপচারিতাতে আপনি সংবাদের অনুসঙ্গ পেতে পারেন। কিন্তু যখন সেটা আপনি পাচ্ছেন তখন সেই বিষয়টা আলাপরত ব্যক্তিকে দ্বিতীয়বার উল্লেখ করে, সে বিষয়ে সুর্নি‍দিষ্ট বক্তব্য নেওয়া খুবিই জরুরি। এটা সাংবাদিকতার মৌলিক নীতির মধ্যে পড়ে। Code of Ethics এ আমরা এসব পড়েছি। চেষ্টা করি ছেলেমেয়েদের একটু পড়ানোর।

একবার খেয়াল করুনতো ... প্রতিদিনের আলাপে আপনি আপনার শিক্ষক-সহকর্মী-সুধীজন, এমনকি রাষ্ট্রের গুরুত্বপূর্ণ ব্যক্তি নিয়ে কত ধরনের আপত্তিকর, অশ্লীল ও অন্য ধরনের কথা বলেন। সেই কথাগুলো যদি কেটে কুটে সংবাদ করা হয়। তাহলে আপনার প্রতি কি সুবিচার করা হবে?

নিশ্চয় নয়?

তাহলে একজন সম্মানিত ব্যক্তির ব্যক্তিগত আলাপচারিতাকে পুঁজি করে তাঁর চরিত্রহনন কি শোভনীয় কিছু?

আবার সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম বিচারালয়ে সে বিষয়ে বিচার-আচারও কি শোভনীয়। শুধু একবার নিজেকে ঐ জায়গায় নিয়ে চিন্তা করুন, তাহলে বুঝতে পারবেন, উপলব্ধি করতে পারবেন।

বুঝতে পারছি, এই পোস্টের পর আমাকেও কটু কথা বলবেন। গালি দেবেন। শুধু এটুকু বলে রাখি, এই অশুভ চর্চা, এই অনৈতিক চর্চা কোন ইতিবাচক বিষয় হতে পারে না।

বিশ্বাস করুন ... কাল বা পরশু আপনি এর শিকার হতে পারেন। তখন হয়তো বর্তমান ভুক্তভোগী মানুষের জ্বালা একটু হলেও বুঝতে পারবেন।

ধন্যবাদ।

মো. মিনহাজ উদ্দীন
সহকারী অধ্যাপক
গণযোগাযোগ ও সাংবাদিকতা বিভাগ
জগন্নাথ বিশ্ববিদ্যালয়।

মহান সংসদে ৫ লাখ ৬৮ হাজার কোটি টাকার বাজেট উপস্থাপন

মহান সংসদে ৫ লাখ ৬৮ হাজার কোটি টাকার বাজেট উপস্থাপন






ডেস্ক রিপোর্টঃ 
মহামারীর বাস্তবতায় দাঁড়িয়ে অর্থনীতির ক্ষত সারানোর পাশাপাশি মানুষের জীবন-জীবিকা রক্ষার চ্যালেঞ্জ সামনে নিয়ে নতুন অর্থবছরের জন্য পাঁচ লাখ ৬৮ হাজার কোটি টাকার বাজেট জাতীয় সংসদের সামনে উপস্থাপন করেছেন অর্থমন্ত্রী আ হ ম মুস্তফা কামাল। 

নতুন অর্থবছরের জন্য প্রস্তাবিত এই ব্যয় বিদায়ী অর্থবছরের সংশোধিত বাজেটের চেয়ে ১৩.২৪ শতাংশ বেশি। টাকার ওই অংক বাংলাদেশের মোট জিডিপির ১৭.৯ শতাংশের সমান।

বিদায়ী অর্থবছরে মুস্তফা কামালের দেওয়া বাজেটের আকার ছিল ২০১৮-১৯ অর্থবছরে সংশোধিত বাজেটের ১৮ শতাংশ বেশি এবং জিডিপির ১৮.৩ শতাংশের সমান।

বৃহস্পতিবার বিকালে স্পিকার শিরীন শারমিন চৌধুরীর সভাপতিত্বে, প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার উপস্থিতিতে জাতীয় সংসদে ২০২০-২১ অর্থবছরের এই বাজেট প্রস্তাব উপস্থাপন করেন অর্থমন্ত্রী। তার আগে মন্ত্রিসভার অনুমোদনের পর ওই প্রস্তাবে সই করেন রাষ্ট্রপতি মো. আবদুল হামিদ।

অর্থমন্ত্রী মুস্তফা কামালকে তার দ্বিতীয় বাজেটটি দিতে হল এমন এক সময়ে, যখন করোনাভাইরাসের মহামারীতে পুরো বিশ্বের অর্থনীতিই টালমাটাল, বাংলাদেশের সামনেও গভীর অনিশ্চয়তা। এবারের বাজেটের শিরোনাম ‘অর্থনেতিক উত্তরণ ও ভতিষ্যৎ পথ পরিক্রমা’।

সংক্রমণ এড়াতে সীমিত সংখ্যক আইনপ্রণেতাকে নিয়ে বিশেষ ব্যবস্থায় চলছে এবারের বাজেট অধিবেশন; অধিবেশন কক্ষে সংসদ সদস্যদের বসতে হয়েছে দূরত্ব রেখে, মুখে মাস্ক আর হাতে গ্লাভস পরে। 

গত কয়েক বছরে সরকার সবচেয়ে বেশি গুরুত্ব দিয়েছে উন্নয়ন খাতকে। এর মধ্যে কয়েকটি বড় প্রকল্পের কাজের গতি থমকে গেছে করোনাভাইরাসের কারণে।

ফল এবারের পাঁচ লাখ ৬৮ হাজার কোটি টাকার বাজেটে উন্নয়ন ব্যয় খুব বেশি না বাড়িয়ে ধরা হচ্ছে ২ লাখ ১৫ হাজার ০৪৩ কোটি টাকা, যা বিদায়ী অর্থবছরের সংশোধিত উন্নয়ন বাজেটের প্রায় ৬.২৭ শতাংশ বেশি।

এর মধ্যে বার্ষিক উন্নয়ন কর্মসূচির (এডিপি) আকার ২ লাখ ৫ হাজার ১৪৫ কোটি টাকা। এরই মধ্যে এডিপি অনুমোদন করা হয়েছে।

এবার পরিচালন ব্যয় ধরা হয়েছে ৩ লাখ ৪৮ হাজার ১৮০ কোটি টাকা, যা বিদায়ী অর্থবছরের সংশোধিত অনুন্নয়ন বাজেটের চেয়ে প্রায় ১৮ শতাংশ বেশি।

এর মধ্যে ৬৫ হাজার ৮৬০ কোটি টাকা প্রজাতন্ত্রের কর্মচারীদের বেতন-ভাতা পরিশোধেই যাবে, যা মোট অনুন্নয়ন ব্যয়ের প্রায় ১৯ শতাংশ। 

মহামারীর মধ্যে গত তিন মাস ধরেই ব্যবসা-বাণিজ্য প্রায় স্থবির, শিল্প উৎপাদনও গতিহারা। আমদানি-রপ্তানি নেমে এসেছে তলানিতে। ফলে রাজস্ব আহরণে লক্ষ্যের চেয়ে অনেক পিছিয়ে পড়েছে এনবিআর।

সঙ্কট দীর্ঘ হলে ক্ষতির মাত্রাও বাড়বে। তারপরও কামাল আশা করছেন, নতুন অর্থবছরের সম্ভাব্য ব্যয়ের ৬৬ শতাংশ তিনি রাজস্ব খাত থেকে পাবেন।

তার প্রস্তাবিত বাজেটে রাজস্ব খাতে আয় ধরা হয়েছে ৩ লাখ ৭৮ হাজার কোটি টাকা। এই অংক বিদায়ী অর্থবছরের সংশোধিত রাজস্ব আয়ের ৮.৫ শতাংশ বেশি। 

র্থবছরের সংশোধিত রাজস্ব আয়ের ৮.৫ শতাংশ বেশি।

এর মধ্যে জাতীয় রাজস্ব বোর্ডের মাধ্যমে কর হিসেবে ৩ লাখ ৩০ হাজার কোটি টাকা আদায় করা যাবে বলে আশা করছেন কামাল। ফলে এনবিআরের কর আদায়ের লক্ষ্যমাত্রা বাড়ছে ৯.৮১ শতাংশ। টাকার ওই অংক মোট বাজেটের ৫৮ শতাংশের বেশি।

গতবারের মত এবারও সবচেয়ে বেশি কর আদায়ের লক্ষ্য ঠিক করা হয়েছে মূল্য সংযোজন কর বা ভ্যাট থেকে, ১ লাখ ২৫ হাজার ১৬২ কোটি টাকা। এই অংক বিদায়ী অর্থবছরের সংশোধিত লক্ষ্যমাত্রার তুলনায় ১৩.৯৪ শতাংশের মত।

বিদায়ী অর্থবছরের বাজেটে ভ্যাট থেকে রাজস্ব আদায়ের লক্ষ্য ধরা ছিল ১ লাখ ২৩ হাজার ৬৭ কোটি টাকা। লক্ষ্য পূরণ না হওয়ায় সংশোধিত বাজেটে তা ১ লাখ ৯ হাজার ৮৪৬ কোটি টাকায় নামিয়ে আনা হয়।

আয়কর ও মুনাফার উপর কর থেকে ১ লাখ ৩ হাজার ৯৪৫ কোটি টাকা রাজস্ব পাওয়ার আশা করা হয়েছে এবারের বাজেটে। বিদায়ী সংশোধিত বাজেটে এর পরিমাণ ছিল ১ লাখ ২ হাজার ৮৯৪ কোটি টাকা।

এছাড়া নতুন বাজেটে আমদানি শুল্ক থেকে ৩৭ হাজার ৮০৭ কোটি টাকা, সম্পূরক শুল্ক থেকে ৫৭ হাজার ৮১৫ কোটি টাকা, রপ্তানি শুল্ক থেকে ৫৫ কোটি টাকা, আবগারি শুল্ক থেকে ৩ হাজার ৬৮৬ কোটি টাকা এবং অন্যান্য কর ও শুল্ক থেকে ১ হাজার ৫৩০ কোটি টাকা আদায়ের পরিকল্পনা করেছেন অর্থমন্ত্রী।

এছাড়া বৈদেশিক অনুদান থেকে ৪ হাজার ১৩ কোটি টাকা পাওয়া যাবে বলে বাজেট প্রস্তাবে তিনি আশা প্রকাশ করেছেন।

বিদায়ী অর্থবছরের মূল বাজেটে মোট রাজস্ব আদায়ের লক্ষ্য ধরা হয়েছিল ৩ লাখ ৭৭ হাজার ৮১০ কোটি টাকা, আদায় সন্তোষজনক না হওয়ায় তা সংশোধন করে ৩ লাখ ৪৮ হাজার ৬৯ কোটি টাকায় নামিয়ে আনা হয়।

২০১৮-১৯ অর্থবছরের মূল বাজেটের আকার ছিল ৫ লাখ ২৩ হাজার ১৯০ কোটি টাকা। সংশোধনে তা ৫ লাখ ১ হাজার ৫৭৭ কোটি টাকায় নেমে এসেছে।

অর্থমন্ত্রী সংসদের সামনে যে বাজেট প্রস্তাব তুলে ধরেছেন, তাতে আয় ও ব্যয়ের হিসাবে সামগ্রিক ঘাটতি থাকছে প্রায় ১ লাখ ৯০ হাজার কোটি টাকা, যা মোট জিডিপির ৬ শতাংশের মত।

সাধারণত ঘাটতির পরিমাণ ৫ শতাংশের মধ্যে রেখে বাজেট প্রণয়নের চেষ্টা হলেও এবার তা সম্ভব হয়নি।

এই ঘাটতি পূরণে অর্থমন্ত্রীর সহায় অভ্যন্তরীণ এবং বৈদেশিক ঋণ। তিনি আশা করছেন, বিদেশ থেকে ৮০ হাজার ১৭ কোটি টাকা এবং অভ্যন্তরীণ উৎস থেকে ১ লাখ ৯ হাজার ৯৮৩ কোটি টাকা ঋণ করে ওই ঘাটতি মেটানো যাবে।

অভ্যন্তরীণ খাতের মধ্যে ব্যাংকিং খাত থেকে ৮৪ হাজার ৯৮৩ কোটি টাকা, সঞ্চয়পত্র থেকে ২০ হাজার কোটি টাকা এবং অন্যান্য খাত থেকে আরও ৫ হাজার কোটি টাকা ঋণ নেওয়ার লক্ষ্য ধরা হয়েছে বাজেটে।

বিদায়ী অর্থবছরের ৮ দশমিক ২ শতাংশ জিডিপি প্রবৃদ্ধির লক্ষ্য ধরা হলেও কোভিড-১৯ দুর্যোগের মধ্যে তা সংশোধন করে ৫ দশমিক ২ শতাংশে নামিয়ে আনা হয়েছে।

সামনে গভীর অনিশ্চয়তা রেখেই অর্থমন্ত্রী আশা করছেন, তার নতুন বাজেট বাস্তবায়ন করতে পারলে মূল্যস্ফীতি ৫.৪ শতাংশের মধ্যে আটকে রেখেই ৮.২ শতাংশ জিডিপি প্রবৃদ্ধি পাওয়া সম্ভব হবে। 

কেশবপুরে ডাক্তার দম্পতি মেয়েসহ একই পরিবারের ৩ জনের করোনা শনাক্ত

কেশবপুরে ডাক্তার দম্পতি মেয়েসহ একই পরিবারের ৩ জনের করোনা শনাক্ত




মোরশেদ আলম
যশোর ভ্রাম্যমাণ প্রতিনিধি। 

যশোর সদর হাসপাতালের তত্ত্বাবধায়ক ডা. দিলীপ কুমার রায় স্ত্রী ও মেয়েসহ করোনায় আক্রান্ত হয়েছেন । ডা. দিলীপ কুমার রায় বৃহস্পতিবার (১১ জুন) দুপুরে নিজেই বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন। তিনি বলেন, বাসাতেই আছি। শারীরিকভাবে কিছুটা দুর্বলতা ছাড়া এমনিতেই ভালো আছি।দিলীপ কুমার জানান, গতকাল আমার ফলাফল পেয়েছি। আমরা বর্তমানে আমাদের কেশবপুরের বাড়িতে অবস্থান করছি। কিছুটা দুর্বলতা অনুভব ছাড়া শারীরিকভাবে সবাই ভালো আছে।

তিনি আরও বলেন, আমাদের ব্যক্তিগত গাড়িরচালক রানাপ্রসাদ সানির (৪৮) শরীরের নমুনা আজ পাঠানো হয়েছে।

যশোর জেনারেল হাসপাতালের আরএমও ডা. আরিফ আহমেদ জানান, গত ৮ জুন তাদের শরীর থেকে নমুনা পাঠানো হয় পরীক্ষার জন্য। নমুনা পরীক্ষায় তাদের শরীরে করোনা শনাক্ত হয়েছে।স্বাস্থ্য বিভাগের একটি সূত্রে জানা গেছে, তত্ত্বাবধায়কের স্ত্রী ডা. অঞ্জলী যশোর মেডিকেল কলেজের সহযোগী অধ্যাপক ও বিশিষ্ট অ্যানেসথেসিস্ট। তিনি ক্যানসারে আক্রান্ত।

সিরাজগঞ্জের একটি ক্যানসার হাসপাতালে রেডিও থেরাপি দিয়ে গত ৭ জুন (রোববার) ডা. অঞ্জলী রায় যশোরে ফেরেন। ৯ জুন তার করোনা পজিটিভ রেজাল্ট পাওয়া যায়। পরদিন ডা. দিলীপ রায় ও তার মেয়ে সন্তান দেবযানি রায়ের (১৫) ফলাফল পজিটিভ এসেছে।

কবি নজরুল উচ্চ বিদ্যালয়ের ইংরেজী শিক্ষক এম.এ.মান্নান ঘুরে ঘুরে করোনা প্রতিরোধে মাস্ক বিতরণ করছেন

কবি নজরুল উচ্চ বিদ্যালয়ের ইংরেজী শিক্ষক এম.এ.মান্নান ঘুরে ঘুরে করোনা প্রতিরোধে মাস্ক বিতরণ করছেন

                                                                                      


কপোতাক্ষ নিউজ ডেস্ক:   
টাংগাইলের নাগরপুর উপজেলার কবি নজরুল উচ্চ বিদ্যালয়ের ইংরেজী বিভাগের রির্সোস টিচার(আরটি) জ্বনাব ডা.এম.এ.মান্নান "নাগরপুর বাজার সহ আশে পাশে মাঠে ঘাটে ও মসজিদে মসজিদে ঘুরে ঘুরে করোনা প্রতিরোধের জন্য সামাজিক দুরত্ব বজায় রেখে সকল শ্রেনীর মানুষের মাঝে মাস্ক বিতরণ করেছেন।     
                                                  আজ বৃহস্পতিবার  ১১ জুন ২০২০ খ্রি.সন্ধা সাতটায় প্রায় ৭০ জন নাগরিকদের মাঝে মাস্ক বিতরন করেছেন ইংরেজী শিক্ষক জ্বনাব এম.এ.মান্নান।          
                                                    নাম প্রকাশ করতে রাজি নন এমন এক সিনিয়র শিক্ষক বলেন-জ্বনাব ডা.এম.এ.মান্নান আমাদের ছাত্র।তিনি একজন ইংরেজী শিক্ষক ও হোমিও চিকিৎসক হয়ে ঘুরে ঘুরে মাস্ক বিতরন করছে এটা শিক্ষক মহলের জন্য একটা গর্বের বিষয়। আমি যতটুকু জানি এম.এ.মান্নানের বিষয়ে তিনি একজন সৎ ও পরহেজগার ব্যক্তি। ছাত্র জিবন থেকেই তিনি অসহায় মানুষ ও অসহায় ছাত্রদের বিভিন্ন ভাবে সহযোগিতা করে আসছেন। জ্বনাব মান্নান নি:সন্দেহ একজন জনদরদী ও আর্দশ শিক্ষক এবং মানবিক ডাক্তার। 
                                             ঘুণীপাড়া আব্দুল রশিদ স্কুল এন্ড কলেজ এর গনিত বিভাগের রির্সোস টিচার জ্বনাব আপেল মাহমুদ বলেন-জ্বনাব ডা.এম.এ.মান্নান স্যার তিনি একজন সৎ শিক্ষক ও হোমিও চিকিৎসক । তিনি এই সময়ে অসহায় মানুষের পাশে দাড়িয়েছে এটা আমাদের জন্য গর্বের বিষয়। তিনি বিভিন্ন সময় গরীব ছাত্রদেরকেও সহযোগিতা করেছেন। এক কথা বলতে গেলে তিনি আমাদের প্রিয় কলিগ কারন সব ভাল কাজে তাকে আমরা আরটি পরিবার পাশে পাই।              
                                                                         জ্বনাব ডা.এম.এ.মান্নানের  চাচাতো ভাই সাংবাদিক সজিব হুসাইন  হাসান বলেন-মান্নান ভাই শুধু শিক্ষকই নন তিনি একজন রেজিস্টার্ড হোমিও চিকিৎসক। আমি যতটুকু জানি মান্নান ভাই সব সময় অসহায় মানুষকে নিয়ে ভাবে। তিনি কয়েক বছর যাবত ফ্রি চিকিৎসার পাশাপাশি ফ্রি মেডিসিন ও দিয়ে আসছেন। করোনা কে কেন্দ্র করে কয়েক ধাপে ডা.মান্নান ভাই অসহায় ও কর্মহীনদের মাঝে চাল,শাকসবজি, শুকনা খাবার,সাবান,হ্যান্ডস্যানিটাইজার ও অসহায় ছাত্রদের শিক্ষা উপকরন বিতরন করে আসছেন। তিনি একজন সমাজসেবক ও ছাত্রবন্ধু।এক কথায় বলতে গেলে  মান্নান ভাইয়ের গুন বলে শেষ করা যাবে না।                                
                                              ইংরেজী শিক্ষক জ্বনাব এম.এ.মান্নান এর কাছে তার অভিমত জানতে চাইলে বলেন- আমি আমার সাধ্যমত মানুষের পাশে দাড়ানোর চেষ্টা করি।করোনা প্রতিরোধ করার জন্য কাজ করা সকল নাগরিকের নৈতিক দায়িত্ব। আমি আমার দায়িত্ব পালন করার চেষ্টা করছি । আমি সকল পেশার মানুষকে অসহায় মানুষের পাশে দাড়ানোর আহবান করছি।আমি সরকারের দেওয়া স্বাস্হবিধি সহ সকল নিয়মকানুন মেনে চলার জন্য সকল নাগরিকদের বিনিতভাবে অাহবান করছি। মহান আল্লাহ যেন আমাদের করোনা সহ সকল প্রকার মসিবত থেকে হেফাজত করেন, আমিন।

সাতক্ষীরার উপকূলীয় অঞ্চলে স্থায়ী বেঁড়িবাধ নির্মাণে প্রস্তুত বাংলাদেশ সেনাবাহিনী

সাতক্ষীরার উপকূলীয় অঞ্চলে স্থায়ী বেঁড়িবাধ নির্মাণে প্রস্তুত বাংলাদেশ  সেনাবাহিনী






ডেস্ক রিপোর্টঃ   সাতক্ষীরায়

সেনাবাহিনী প্রধান জেনারেল জনাব, আজিজ আহমেদ মহাদয়  বলেছেন, দেশের প্রয়োজনে জাতির প্রয়োজনে সেনাবাহিনী বেড়িবাঁধ নির্মাণসহ যে কোন কাজ করবে।

সাতক্ষীরার উপকূলীয় এলাকায় বেড়িবাঁধ নির্মাণ কাজের দায়িত্ব পেলে সেনাবাহিনীর নিজ দায়িত্ব নিয়ে সেটা করবে বলে জানান সেনাপ্রধান। সাতক্ষীরা সার্কিট হাউজে ঘূর্ণিঝড় আম্ফানে ক্ষতিগ্রস্থ এলাকা পরিদর্শনকালে সাংবাদিকদের প্রশ্নের জবাবে এ কথা বলেন সেনাপ্রধান।

চট্রগ্রামের জলাবদ্ধতার মেগা প্রজেক্ট সেনাবাহিনী করছে। সিরাজগঞ্জ ও জামালপুরের বাঁধ রক্ষার কাজ সেনাবাহিনী সফলভাবে করছে বলেও উল্লেখ করেন তিনি।

জেনারেল আজিজ আহমেদ মহাদয়  আরও বলেন, সূপেয় পানি সংকটেও সহায়তা করতে প্রস্তুত আছে সেনাবাহিনী। সংশ্নিষ্টরা চাইলে ওয়াটার ট্রিটমেন্ট প্লান্ট সরবরাহ করা হবে। এছাড়া ঘর নির্মাণসহ খাদ্য সহায়তাও দিয়ে যাচ্ছে সেনাসদস্যরা। সেই সঙ্গে মাসব্যাপী গর্ভবতী নারীদের চিকিৎসা সেবা দিবে মেডিক্যাল কোরের সদস্যরা। 
সেখানকার সাধারণ জনগণের দাবী দাবার একটাই কথা উঠে আসে ভেঁড়িবাধ মজবুত টেকসই চাই। আমাদের জীবণ সবসময়ের জন্য আতঙ্কে থাকে সেই জন্য বাংলাদেশ সেনাবাহিনীর এই উদ্যোগ আমাদের উপকূলীয় অঞ্চলের মানুষ নদী ভাঙ্গনের কবল থেকে বাঁচতে পারবে। সেনাবাহিনীর প্রধান সাতক্ষীরা পরিদর্শন করতে যাওয়ায় সাতক্ষীরা উপকূলীয় মানুষ অনেক ধন্যবাদ জানান সেনা প্রধান মহাদয়কে।
এদিকে
লকডাউনের বিষয়ে সেনাপ্রধান বলেন, স্থানীয় প্রশাসনের প্রয়োজনে সেনাবাহিনী কাজ করছে করোনা পরিস্থিতি মোকাবিলায় এবং করে যাবে। দেশ ও জাতির কল্যাণ এর জন্য সেনাবাহিনী জাক করছে।

সেনাবাহিনী প্রধানের সাতক্ষীরা সফর কালে ফুলেল শুভেচ্ছা বিনিময় করেন সাতক্ষীরা জেলা পুলিশ সুপার

সেনাবাহিনী প্রধানের সাতক্ষীরা সফর কালে ফুলেল শুভেচ্ছা বিনিময় করেন সাতক্ষীরা জেলা পুলিশ সুপার


,
ডেস্ক রিপোর্টঃ
১১-০৬-২০২০
সেনাবাহিনী প্রধান জেনারেল আজিজ আহমেদ মহোদয়ের সাতক্ষীরা জেলা সফরে জেলা পুলিশ সাতক্ষীরার পক্ষ থেকে  ফুলেল শুভেচ্ছা জানান সাতক্ষীরা জেলা পুলিশ সুপার জনাব, মোস্তাফিজুর রহমান মহাদয়। সেই সাথে আইন শৃঙ্খলা বজায় রাখা প্রশাসনের ও প্রশাসক এর কার্যক্রম সম্বন্ধে আলোচনা ও মত বিনিময় করেন।

সেনাবাহিনীর অর্থায়নে ২৫ টি পরিবারে কাপড় ও বস্ত্র বিতরণ

সেনাবাহিনীর অর্থায়নে ২৫ টি পরিবারে কাপড় ও বস্ত্র বিতরণ




 মিঠুন কুমার রাজ 
পিরোজপুজ জেলা প্রতিনিধিঃ
 করোনাভাইরাস কোভিড-১৯ আক্রমণে মানুষের জীবনমান যখন বিপর্যস্ত, বেঁচে থাকার লড়াই করেন যাচ্ছেন,ঠিক তখনই পিরোজপুর জেলার ইন্দুরকানী উপজেলার বালিপাড়ার ০১ নং ওয়ার্ডের সেনাবাহিনী মোঃ হেলাল হোসেন হাওলাদারের নিজেস্ব অর্থায়নে ২৫টি পরিবারকে কাপড় ও বস্ত্র বিতরণ করেন। শনিবার ০১ নং ইউনিয়নের বটতলা বাজারের সামনে বসে সেনাবাহিনী মোঃ হেলাল এর বড় বোন তাসলিমা বেগম ভাইয়ের পক্ষ থেকে এসব উপহার সামগ্রী এলাকার হতদরিদ্রদের মাজে বিতরণ করেন। দেশে করোনার প্রভাব ছাড়া ও প্রতি বছরই ওয়ার্ডের হতদরিদ্রের সামর্থ অনুযায়ী সহযোগীতার হাত বাড়িয়েছেন মোঃ হেলাল হাওলাদার। আমি অসহায় মানুষের পাশে ছিলাম আছি এবং থাকব ইনশাআল্লাহ।

কুষ্টিয়ায় আজ করোনা শনাক্ত ২৪ জন

কুষ্টিয়ায় আজ  করোনা শনাক্ত ২৪ জন





কুষ্টিয়া প্রতিনিধি। 



কুষ্টিয়ায় আজ (১১ জুন) ২৪ করোনা রোগী শনাক্ত হয়েছে। এ নিয়ে কুষ্টিয়ায় মোট করোনা আক্রান্তের সংখ্যা দাঁড়ালো ২০২।
কুষ্টিয়া জেনারেল হাসপাতালের আবাসিক মেডিকেল অফিসার তাপস কুমার সরকার জানান ১১ জুন পিসিআর ল্যাবে কুষ্টিয়ার ১২১টি নমুনা পরীক্ষা করা হয়। এর মধ্যে ২৪টি পজিটিভ পাওয়া যায়।
নতুন আক্রান্তদের মধ্যে কুষ্টিয়া সদর উপজেলার ২০ জন, দৌলতপুরের ১ জন , মিরপুরের ৩ জন। এদের মধ্যে বেশ কয়েকজন পুলিশ সদস্য রয়েছে বলে জানানো হয়েছে।
সদর উপজেলায় আক্রান্তদের বাড়ি শহরের পুলিশ লাইন,বাড়াদি, হরিনারায়ণপুর, হাউজিং, কোর্টপাড়া এলাকায়।
এদের মধ্যে ১৯ জন পুরুষ ও ৫ জন নারী।
গতকাল কুমারখালিতে সনাক্ত হওয়া একজন নারী ফলোআপ পজিটিভ হওয়ায় তাকে হিসাব থেকে বাদ দেওয়া হয়েছে।
এ পর্যন্ত উপজেলা ভিত্তিক আক্রান্তের পরিমাণ দাঁড়ালো দৌলতপুর ২৯, ভেড়ামারা ৩৩, মিরপুর ১৮, সদর ৮৫,কুমারখালী ২৫, খোকসা ১২। এ যাবৎ সুস্থ হয়ে ছাড়া পেয়েছেন মোট ৩৯ জন।
উপজেলা ভিত্তিক সুস্থ ৩৭ জন। বর্তমানে হোম আইসোলেশনে চিকিৎসাধীন ১৫৬ জন। হাসপাতালে চিকিৎসাধীন ৭ জন। খুলনায় চিকিৎসাধীন ২ জন।

২০২০-২০২১ অর্থ বছরে বাজেটে দাম বাড়ছে যেসব পণ্যের

২০২০-২০২১ অর্থ বছরে বাজেটে দাম বাড়ছে যেসব পণ্যের




সম্রাট হোসেন / স্টাফ রিপোর্টারঃ  
দেশে চলমান করোনা ভাইরাস পরিস্থিতিতে ২০২০-২১ অর্থবছরের প্রস্তাবিত বাজেটে বিভিন্ন খাতের কিছু পণ্যের শুল্ক বাড়ানোর প্রস্তাব করা হয়েছে। বৃহস্পতিবার (১১ জুন) বিকেল সোয়া ৩টায় জাতীয় সংসদে অর্থমন্ত্রী আ হ ম মুস্তফা কামাল এ বাজেট উত্থাপন করেন।

এটি দেশের ৪৯তম ও বর্তমান সরকারের তৃতীয় মেয়াদের দ্বিতীয় বাজেট। আর অর্থমন্ত্রী হিসেবে আ হ ম মুস্তফা কামালের দ্বিতীয় বাজেট।

যেসব পণ্যের দাম বাড়বে। যেমন- আমদানি করা পেঁয়াজ, এয়ারকন্ডিশনার, প্রসাধনী সামগ্রী, মোবাইল ফোন সেবা খরচ, ইন্টারনেট সেবা, বিড়ি ও সিগারেট, আলোকসজ্জা সামগ্রী, গাড়ি রেজিস্ট্রেশন খরচ, গাড়ি, শ্যাম্পু, চকলেটসহ বিদেশি টিভিতে দাম বাড়ানোর প্রস্তাব করা হয়েছে।

প্রস্তাবিত বাজেটে যেসব পণ্যের দাম বাড়ানোর প্রস্তাব করা হয়েছে৷ যেমন, শীতাতপ নিয়ন্ত্রিত লঞ্চের টিকিট খরচ বাড়বে। আগে ৫ শতাংশ মূল্য সংযোজন কর ছিল, নতুন অর্থবছরে তা বাড়িয়ে ১০ শতাংশ করার প্রস্তাব করা হয়েছে।

চার্টার্ড ফ্লাইট ও হেলিকপ্টার ভাড়ার ওপর সম্পূরক শুল্ক ২৫ শতাংশ থেকে ৩০ শতাংশ করার প্রস্তাব করা হয়েছে। প্রসাধনী সামগ্রীর ওপর সম্পূরক শুল্ক ৫ থেকে ১০ শতাংশ করার প্রস্তাব করা হয়েছে। পেঁয়াজ আমদানিতে কিছুটা শুল্ক আরোপ হবে। আসবাবপত্র কেনায় মূসক বেড়েছে। ৫ থেকে সাড়ে ৭ শতাংশ করা হয়েছে। মোবাইল ফোনে কথা বলার ওপর কর বাড়ছে।

প্রাইভেটকার ও জিপ রেজিস্ট্রেশনসহ বিআরটিএ প্রদত্ত অন্যান্য সার্ভিস ফির ওপর সম্পূরক শুল্ক ১০ শতাংশ থেকে বাড়িয়ে ১৫ শতাংশ করার প্রস্তাব করা হয়েছে। সিরামিকের সিঙ্ক বেসিনের ওপর ১০ শতাংশ সম্পূরক শুল্ক আরোপ করা হয়েছে। মধুর বাল্ক আমদানি শুল্ক বাড়ছে। বিদেশি মধুর দাম বাড়বে।

এছাড়া হাতে তৈরি খাবার, গুঁড়া দুধ, রং, অনলাইন খাবার, অনলাইন কেনাকাটা, সোডিয়াম, সালফেড, আয়রন স্টিল, স্ক্রু, বার্নিস, বাইসাইকেল, কম্প্রেসার শিল্পে ব্যবহৃত উপকরণ, বিদেশি মোটরসাইকেল বডি স্প্রে, স্মার্টফোন, ফলের জুস, বোতলজাত পানি, আমদানি করা অ্যালকোহল, কোমল পানীয় পলিথিন ব্যাগের দাম প্রস্তাবতি বাজেট বাড়ানোর প্রস্তাব করা হয়েছে।

প্রস্তাবিত ২০২০-২১ অর্থবছরের আকার ৫ লাখ ৬৮ হাজার কোটি টাকা। যা জিডিপির ১৭ দশমিক ৯ শতাংশ। প্রস্তাবিত বাজেটে পরিচালনসহ অন্যান্য ব্যয় বাবদ খরচ ধরা হচ্ছে ৩ লাখ ৬২ হাজার ৮৫৫ কোটি টাকা। বার্ষিক উন্নয়ন কর্মসূচিতে বরাদ্দ ধরা হয়েছে ২ লাখ ৫ হাজার কোটি টাকা।

রাজস্ব আয়ের প্রস্তাব করা হয়েছে ৩ লাখ ৮২ হাজার ১৬ কোটি টাকা। এর মধ্যে জাতীয় রাজস্ব বোর্ডকে (এনবিআর) রাজস্ব আদায়ের লক্ষ্যমাত্রা দেওয়া হচ্ছে ৩ লাখ ৩০ হাজার কোটি টাকা। এনবিআর বহির্ভূত করসমূহ থেকে রাজস্বে লক্ষ্যমাত্রা নির্ধারণ করা হয়েছে ১৫ হাজার কোটি টাকা। এছাড়া কর ব্যতীত রাজস্বের লক্ষ্যমাত্রা নির্ধারণ করা হয়েছে ৩৩ হাজার কোটি টাকা। প্রস্তাবিত বাজেটে মোট ঘাটতির পরিমাণ দাঁড়াচ্ছে ১ লাখ ৯০ হাজার কোটি টাকা। যা জিডিপির ৬ শতাংশ। এ হার গত বাজেটে ছিল ৫ শতাংশ।