লেখা পড়া প্রতিদিন

লেখা পড়া প্রতিদিন




আজকের বিষয় জাবেদা ( Journal) অধ্যায় ছয়
  জাবেদার অর্থ ও সংঙ্গা 
Meaning and Definition of journal.
  উৎসঃ জাবেদা বা "Journal" শব্দটি ফরাসি "  jour" শব্দ হতে উদ্ভব হয়েছে।" jour" অর্থ হল দিন। Journal-এর বাংলা পরিভাষা  হলো জাবেদা বা দৈনিক বই বা' Day Book'। অতএব, দৈনন্দিন লেনদেনগুলো প্রতিদিন এই বইতে লেখা হয় বলে  এর নামকরন করা হয়েছে    ' Journal'বা জাবেদা। হিসাববিজ্ঞান  চক্রের
প্রথম ধাপ হলো জাবেদাভুক্তিকরণ। লেনদেন সংঘটিত হওয়ার পর সর্বপ্রথম জাবেদাভুক্ত করা হয় এবং তারপর খতিয়ানে স্থানান্তর করা হয়।কারবারে দৈনন্দিন অসংখ্য লেনদেন সংঘটিত হয়।

অতএব, কারবারের প্রত্যেক লেনদেনেরগুলো সংঘটিত হওয়ামাত্র দু'তরফা দাখিলা পদ্ধতির নিয়ম অনুযায়ী  দুটি পক্ষ থাকে,ডেবিট  এবং ক্রেডিট বিশ্লেষণ করে তারিখ অনুসারে পরপর প্রয়োজনীয় ব্যাখ্যাসহ যে বইতে সর্বপ্রথম লেখা হয় তাকে জাবেদা বলে। লেনদেনসমূহকে পৃথক পৃথক শিরোনামের অধীনে সাজানো হয় এবং ডেবিট ও ক্রেডিট এ বিশ্লেষণ করে লিপিবদ্ধ করা হয় বলে জাবেদাকে কেউ কেউ প্রাথমিক হিসাবের বই,(Books of First Entry) মৌলিক হিসাবের বই,( Books of original Entry)কালীন হিসাবের বই,(Chronological Book)সহকারী হিসাবের বই( Subsidiary Book) রূপে সংঙ্গায়িত করেছেন।

জাবেদাকরণ বা জাবেদাভুক্তির নিয়ম
Rules for journalising
  কারবারের দৈনন্দিন লেনদেন সংঘটিত হওয়ার পর উক্ত লেনদেবগুলো দু' তরফা দখিলা পদ্ধতি মোতাবেক হিসাবের ডেবিট ও ক্রেডিট সঠিকভাবে নির্ণয় করতে হলে হিসাবের প্রাথমিক বই জাবেদায় লিপিবদ্ধ করার প্রক্রিয়াকে জাবেদায়ন বা জাবেদাভুক্তিকরন বলে। জাবেদাভুক্তি নিয়ম নিম্নে দেওয়া হলো।১। জাবেদার ছক ২। তারিখ লেখা ৩। হিসাব খাত নির্ণয়  ৪। ডেবিট / ক্রেডিট উপস্থাপন ৫। লেনদেনের ব্যাখ্যা ৬। খতিয়ানের পৃষ্ঠা নম্বর লেখা ৭। টাকার পরিমাণ লেখা  ৮। সমন্তরাল রেখা টানা ৯। স্থানান্তর  ১০।  সমপ্তিসূচক রেখা

লেনদেনের জাবেদাভুক্তির স্বর্ণসূত্র 
Golden Rules for Journalising Transactions 
 সাধারণত  তিনটি  পদ্ধতি বিরাজমান। যথা- যথা- ১। ব্যক্তিবাচক হিসাব ( personal Account) : ক।মূল্য গ্রহণকারী ডেবিট  খ।মূল্য প্রদানকারী ক্রেডিট  
 ২। সম্পত্তিবাচক হিসাব : ক। ব্যবসায় সম্পত্তি আসলপ ডেবিট খ।ব্যবসায় সম্পত্তি চলে গেলে ক্রেডিট 
৩। নামিক হিসাব ক। ব্যবসায়ের ব্যায় বা ক্ষতি ডেবিট খ। ব্যবসায়ের আয় বা লাভ ক্রেডিট 
আধুনিক পদ্ধতি বা সমীকরণ পদ্ধতি ( Modern Method or Equation Method)   আধুনিক হিসাবশাস্তবিদগন হিসাব সমীকরণের আলোকে হিসাবের শ্রেণীবিভাগ করার প্রয়াস পেয়েছে।হিসাব সমীকরণ হল কোন ব্যবসায় প্রতিষ্ঠানের আর্থিক অবস্থার  অর্থাৎ সম্পত্তি দায় ও স্বত্বাধিকারের সমন্বিত রূপ।মৌলিক হিসাব সমীকরণ হলঃ A= L+ P or, A=L+P ( Capital + Income - Expenses)  or,A=L+ ( Capital + Income - Expenses)   
এখানে 
A= Assets    বা সম্পত্তি 
L=  Liabilities বা দায়( বহিঃ দায়) 
p= Proprietorship  বা  মালিকানাস্বত্ব
মালিকানাস্বত্ব= মূলধন + আয়- ব্যয়- উত্তোলন
Proprietorship = Capital+ Income -Expenses - Drawing
সম্পত্তি সর্বদা ডেবিট উদ্বৃত্ত =  বৃদ্ধি পেলে ডেবিট আর হ্রাস পেলে ক্রেডিট 
দায় সর্বদা ক্রেডিট উদ্বৃত্ত = বৃদ্ধি পেলে ক্রেডিট আর হ্রাস পেলে ডেবির
মূলধন সর্বদা ক্রেডিট উদ্বৃত্ত = বৃদ্ধি পেলে ক্রেডিট আর হ্রাস পেলে ডেবিট 
আয় সর্বদা ক্রেডিট উদ্বৃত্ত =বৃদ্ধি পেলে ক্রেডিট আর হ্রাস পেলে ডেবিট 
ব্যায় সর্বদা ডেবিট উদ্বৃত্ত = বৃদ্ধি পেলে ক্রেডিট আর হ্রাস পেলে ডেবিট যেমন; 
২০১৯ ইং 
জুলাই ১ 
আঁখির নিকট মাল বিক্রয় ৫০,০০০.০০
আঁখি  হিসাব        ডেবিট ৫০,০০০.০০ টাকা
    বিক্রয় হিসাব        ক্রেডিট ৫০,০০০.০০
(যেহেতু, ধারে মাল বিক্রয় করা হলো)
৩ আসবাবপত্র ক্রয় ১০,০০০.০০ টাকা
আসবাবপত্র হিসাব     ডেবিট ১০,০০০.০০
       নগদান হিসাব         ক্রেডিট  ১০,০০০.০০
(যেহেতু, নগদে আসবাবপত্র ক্রয় করা হলো)
৭ জুবাইদার কাছ থেকে পাওয়া গেলো১,৫০০.০০ টাকা
জুবাইদা হিসাব     ডেবিট  ১,৫০০.০০
     নগদান হিসাব     ক্রেডিট ১,৫০০.০০ 
(যেহেতু, জুবাইদার কাছ থেকে নগদ পাওয়া গেলো)
১০ মনিহারী ক্রয় ১০০০.০০ টাকা
মনিহারী হিসাব    ডেবিট ১০০০.০০
    নগদান হিসাব    ক্রেডিট ১০০০.০০ 
(যেহেতু, মনিহারী খরচ নগদ প্রদত্ত হলো)।
 মোঃ সবুজ হোসেন (B.B.A. hon' s Accounting. M.B.A. Accounting.  L.L.B.)
প্রভাষক হিসাববিজ্ঞান বিভাগ গঙ্গানন্দপুর ডিগ্রি কলেজ ঝিকরগাছা, যশোর।

হাসপাতাল ও আইসোলেশন সেন্টারে রেড ক্রিসেন্ট চট্টগ্রামের বিশুদ্ধ পানীয় প্রেরণ

হাসপাতাল ও আইসোলেশন সেন্টারে রেড ক্রিসেন্ট চট্টগ্রামের বিশুদ্ধ পানীয় প্রেরণ




রিয়াজুল করিম রিজভী প্রতিনিধি চট্টগ্রাম

করোনা ভাইরাস পরিস্থিতিতে মানুষের কল্যাণে সেবা প্রদানকারী চিকিৎসক, চিকিৎসক সহযোগী ও স্বেচ্ছাসেবকদের জন্য ২২ জুন বাংলাদেশ রেড ক্রিসেন্ট সোসাইটি চট্টগ্রাম জেলা ইউনিটের উদ্যোগে যুব রেড ক্রিসেন্ট চট্টগ্রামের স্বেচ্ছাসেবকদের অংশগ্রহণে পানীয় প্রেরণ করা হয়। বাংলাদেশ রেড ক্রিসেন্ট সোসাইটির ম্যানেজিং বোর্ড সদস্য ও চট্টগ্রাম জেলা ইউনিটের ভাইস চেয়ারম্যান ডাঃ শেখ শফিউল আজম এর তত্ত্বাবধাণে নগরীর চট্টগ্রাম মেডিকেল কলেজ হাসপাতালের জরুরী বিভাগ, চট্টগ্রাম মেডিকেল কলেজ হাসপাতালের পিসিআর ল্যাবে নিয়োজিত চিকিৎসক, স্বেচ্ছাসেবকদের এবং চট্টগ্রাম সিটি কর্পোরেশন পরিচালিত সিটি কনভেশন হল আইসোলেশন সেন্টারের কোভিড আক্রান্তদের সেবায় নিয়োজিত চিকিৎসক স্বেচ্ছাসেবকদের জন্য কোকাকোলা মিনারেল পানীয় প্রেরণ করা। উক্ত কার্যক্রমে অংশগ্রহণ করে যুব রেড ক্রিসেন্ট চট্টগ্রামের প্রশিক্ষণ বিভাগীয় উপ প্রধান তানভীর আহমেদ চৌধুরী মাহিন।

আওয়ামিলীগে প্রতিষ্ঠা বার্ষিকীতে যুবলীগ নেতা মোঃ জিয়াউল হাসান রনির শুভেচ্ছা বিনিময়

আওয়ামিলীগে প্রতিষ্ঠা বার্ষিকীতে যুবলীগ নেতা মোঃ জিয়াউল হাসান রনির শুভেচ্ছা বিনিময়





মিঠুন কুমার রাজ, 
পিরোজপুর জেলা প্রতিনিধি। 

 বাংলাদেশ আওয়ামীলীগ এ দেশের বৃহত্তম ও প্রাচীনতম ঐতিহ্যবাহী রাজনৈতিক দল। ১৯৪৭ সালে ব্রিটিশ শাসনের অবসান ও পাকিস্তান প্রতিষ্ঠার পর জননেতা হোসেন শহীদ সোহরাওয়ার্দী, মওলানা আবদুল হামিদ খান ভাসানী, জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান ও শামসুল হকের নেতৃত্বে ১৯৪৯ সালের ২৩ জুন আওয়ামী লীগ প্রতিষ্ঠিত হয়। জন্মলগ্ন থেকেই দুর্যোগ মোকাবেলা,ধর্মনিরপেক্ষতা, সাম্প্রদায়িক রাজনীতি, বাঙালি জাতীয়তাবাদ, গণতান্ত্রিক সংস্কৃতি, শোষণমুক্ত সাম্যের সমাজ নির্মাণের আদর্শ এবং একটি উন্নত সমৃদ্ধ আধুনিক, প্রগতিশীল সমাজ ও রাষ্ট্রব্যবস্থা নির্মাণের রাজনৈতিক-অর্থনৈতিক-সামাজিক ও সাংস্কৃতিক দর্শনের ভিত্তি রচনা করে আওয়ামীলীগ।  যার প্রেক্ষিতে ১৯৫৫ সালের কাউন্সিলে ধর্মনিরপেক্ষ নীতি গ্রহণের মাধ্যমে অসাম্প্রদায়িক রাজনৈতিক দল হিসেবে ‘পূর্ব পাকিস্তান আওয়ামীলীগ’ নামকরণ করা হয়।   
বিভিন্ন সময়ে বাংলাদেশ থেকে আওয়ামীলীগ কে নিশ্চিহ্ন করার চেষ্টা হয়েছে, ষড়যন্ত্র হয়েছে,কিন্তু বাংলাদেশ আওয়ামীলীগ গৌরবময় ৭১তম প্রতিষ্ঠাবার্ষিকী উদযাপন করছে।
বাংলাদেশ আওয়ামীলীগের গৌরবের সফল অভিযাত্রা অভিনন্দন/ ভালোবাসা ও মুজিবীয় শুভেচ্ছা জানান ইন্দুরকানী উপজেলার বালিপাড়া ইউনিয়ন যুবলীগের যুগ্ন আহবায়ক মোঃ জিয়াউল হাসান রনি। তিনি তার পক্ষ থেকে বাংলাদেশ আওয়ামীলীগের ৭১তম প্রতিষ্ঠা বার্ষিকী উপলক্ষে  আ’লীগের সভাপতি জননেত্রী  প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনাকে শুভেচ্ছা ও অভিনন্দন জানান।     
বাংলাদেশ আওয়ামীলীগের প্রতিটি নেতা কর্মি ও ইন্দুরকানী উপজেলা আওয়ামীলীগের প্রতিটি নেতা কর্মীর দীর্ঘায়ু ও সফলতা কামনা করেন তরুণ এই যুবলীগ নেতা মোঃ জিয়াউল হাসান রনি।

আশাশুনিতে ইউএনও'র ভাঙ্গন কবলিত এলাকা পরিদর্শন

আশাশুনিতে ইউএনও'র ভাঙ্গন কবলিত এলাকা পরিদর্শন




আহসান উল্লাহ বাবলু, আশাশুনি( সাতক্ষীর) প্রতিনিধি : 

আশাশুনিতে ভেড়িবাঁধ ভাঙ্গন কবলিত এলাকা পরিদর্শন করলেন উপজেলা নির্বাহী অফিসার মীর আলিফ রেজা। সোমবার বিকালে উপজেলার শ্রীউলা ইউনিয়নের হাজরাখালী ভেড়িবাঁধ ভাঙ্গনে প্লাবিত এলাকা পরিদর্শন করে পানি বন্দি মানুষের খোঁজ খবর নেন। পরিদর্শনকালে জোয়ারের পানিতে বীর মুক্তিযোদ্ধা আব্দুল মালেক সানার কবরের লাশ বেরিয়ে যাওয়ায় তার লাশ পার্শবর্তী মাড়িয়ালা প্রাথমিক বিদ্যালয়ের পাশে স্থানীয় ইউপি চেয়ারম্যান ও বীর মুক্তিযোদ্ধাদের মাধ্যমে দাফনের ব্যবস্থা করেন। এবং উপজেলা প্রশাসনের মাধ্যমে দাফনের জন্য অনুদান এবং সরকারী ত্রাণের খাদ্য সামগ্রী পৌছে দেয়াসহ বাঁধ মেরামতের কার্যক্রম পরিদর্শন ও অগ্রগতি নিয়ে দায়িত্বপ্রাপ্ত কর্মকর্তার সঙ্গে কথা বলেন। এবং মাড়িয়ালা থেকে হাজরাখালী পর্যন্ত এলজিইডি এর রাস্তার পাড় ভেঙ্গে যাওয়ায় জরুরী পাড় বাঁধাসহ রাস্তা সংস্কারের প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা নেয়ার জন্য উপজেলা প্রকৌশলীকে অনুরোধ করেন। এছাড়া মাস্ক পরা ও সামাজিক দুরত্ব বজায় রাখার জন্য সবাইকে সচেতন করা হয়েছে বলে জানিয়েছেন। এ সময় সাবেক মুক্তিযোদ্ধা কমান্ডার আব্দুল হান্নান, শ্রীউলা ইউপি চেয়ারম্যান আবু হেনা শাকিল উপস্থিত ছিলেন।

বুধহাটা শিবকালী মন্দিরের রাস্তা উন্নয়নের প্রতিশ্রুতি বাস্তবায়ন হয়নি

বুধহাটা শিবকালী মন্দিরের রাস্তা উন্নয়নের  প্রতিশ্রুতি বাস্তবায়ন হয়নি



আহসান  উল্লাহ  বাবলু আশাশুনি ( সাতক্ষীরা) প্রতিনিধি ঃ আশাশুনি উপজেলার ঐতিহ্যবাহী বুধহাটা দ্বাদশ শিব ও কালি মন্দির রাস্তা উন্নয়নে প্রতিশ্রুতি বাস্তবায়িত না হওয়ায় জনসাধারণের ভোগান্তি বেড়েই চলেছে। এনিয়ে মানুষের মধ্যে ক্ষোভের সৃষ্টি হচ্ছে। 
বুধহাটা বাজারের পাশে বসবাস করে বিভিন্ন সম্প্রদায়ের লোকজন। বুধহাটা গনেশ ঘোষ এর বাড়ী হয়ে মন্দিরের রাস্তা, চারা বট তলা দিয়ে বাজার রাস্তা, বকুল তলা থেকে মন্দির ও তহশীল অফিসে যাতয়াত করার রাস্তা, হরিদাস দেবনাথের বাড়ী হয়ে বাজারের রাস্তা দীর্ঘ এক যুগ ধরে চলাচলের অযোগ্য হয়ে পড়ে আছে। কিন্তু অজ্ঞাত কারনে সংস্কারের ব্যবস্থা করা হয়নি। রাস্তা দিয়ে বুধহাটা বি বি এম কলেজিয়েট স্কুল, এবিসি কেজি স্কুল, বুধহাটা নি¤œ মাধ্যমিক বালিকা বিদ্যালয়, বুধহাটা পশ্চিম পাড়া সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের ছাত্র ছাত্রী সহ বুধহাটা, নওয়াপাড়া, শ্বেতপুর, বেউলা, মহেশ^রকাটি, চাপড়া, পাইথালী, চিলেডাঙ্গা, হাবাসপুর, জোড়দিয়া সহ বিভিন্ন গ্রামের হাজার হাজার মানুষ চলাচল করে থাকে। প্রতিদিন স্কুল, অফিস, বাসা বাড়ি, হাট বাজারে যাতয়াতের পাশাপাশি ঐতিহ্যবাহী বুধহাটা দ্বাদশ শিব ও কালী মন্দির, বুধহাটা ইউনিয়ন ভূমি অফিস, বুধহাটা কাছারী পাড়া মন্দির, বুধহাটা সুবর্ণ বণিক পাড়া পূজা মন্দির, রিশিল্পীসহ বিভিন্ন এনজিওতে যাতয়াত করার জন্য এটি খুবই প্রয়োজনীয় সড়ক। উন্নয়নের ক্ষেত্রে সড়কটি অবহেলিত রয়ে গেছে। এলাকাবাসি এই রাস্তা  সংস্কারের জন্য চেয়ারম্যান, উপজেলা চেয়ারম্যান ও এমপি সহ বিভিন্ন দপ্তরে আবেদন নিবেদন করেছেন অনেকবার। পত্রপত্রিকায়ও রিপোর্ট হয়েছে অনেকবার। কিন্তু উন্নয়নের কাজ তেমন কিছু হয়নি। অপরদিকে রাস্তা দখল করে অবৈধ ভাবে দোকান, মিলকল কারখানা, বসতি স্থাপিত হলেও উচ্ছেদের ব্যাপারে প্রশাসনের কোন নজরদারি নেই। সব চেয়ে অসুবিধা হচ্ছে বসত বাড়ির পয়ঃনিষ্কাশনের ময়লা রাস্তার উপর দিয়ে প্রবাহিত হয়ে আসছে প্রতিনিয়িত। ফলে মারাত্মক ভাবে পরিবেশ ক্ষতিগ্রস্ত হচ্ছে। সৃষ্টি হচ্ছে মশা ও এডিস মশার লার্ভা। এছাড়া সড়কের উপর যানবাহন রেখে মালামাল লোড-আনলোড করায় যানবাহন ও পথচারীদের চলাচল খুবই সমস্যা গচ্ছে। এলাকার অনেকে জানান, এলাকার পানি নিষ্কাশনের সু-ব্যবস্থা না থাকায় একটু বৃষ্টিতেই রাস্তায় ব্যাপক জলাবদ্ধতার সৃষ্টি হয়। পানি নিষ্কাশনের সু-ব্যবস্থা ও কর্তৃপক্ষের অবহেলা আর উদাসিনতার কারনে শত শত   মানুষ জলাবদ্ধতার মধ্যে দিয়ে যাতয়াতের কারনে অতিষ্ট হয়ে উঠেছে। জলাবদ্ধতার ও রাস্তার মধ্যে অসংখ্য গর্তের কারনে ছোট খাট দুর্ঘটনা লেগে আছে। এব্যাপারে ৬ নং ওয়ার্ড মেম্বার মোঃ রেওজয়ান আলী বলেন, বেশ কয়েক বছর হল রাস্তা সংস্কার করা হয়না। রাস্তাটির বেহাল অবস্থার কারণে আমাদের যাতায়াত কষ্টসাধ্য হয়ে পড়েছে। এই রাস্তা দিয়ে প্রতিদিন ১৫-২০টি গ্রামের মানুষের যাতয়াতের রাস্তা। বুধহাটা দ্বাদশ শিবকালী মন্দিরের পুরোহিত বিকাশ ব্যানার্জী বলেন, রাস্তার জন্য বিভিন্ন দপ্তরে চেষ্টা চালিয়ে এখনো কোন ফল পাইনি। এলাকাবাসিকে সাথে নিয়ে কোন ভাবে যাতয়াতের জন্য আমরা কয়েকবার সংস্কার করেছি। তারপরও বর্তমানে উন্নয়নের যুগে আমাদের মন্দির, বাজার ও তহশীল অফিসে যাওয়াতের রাস্তাটির উন্নয়ন হলো না।

আশাশুনিতে জুম সফটওয়ার অনলাইনে সভা অনুষ্ঠিত

আশাশুনিতে জুম  সফটওয়ার অনলাইনে সভা অনুষ্ঠিত




আহসান  উল্লাহ  বাবলু আশাশুনি ( সাতক্ষীরা) প্রতিনিধি ঃ আশাশুনি উপজেলায় জুম সফটওয়ার অন লাইনে বিভিন্ন কমিটির সভা অনুষ্ঠিত হয়েছে। সোমবার (২২ জুন ) উপজেলা নির্বাহী অফিসারের সঞ্চালনায় এ সভা অনুষ্ঠিত হয়। করোনা পরিস্থিতিতে সামাজিক দূরত্ব বজায় রাখতে উপজেলা নির্বাহী অফিসার মীর আলিফ রেজা নিজ কার্যালয়ে বসে অন লাইন জুম সফওয়ারে উপজেলার বিভিন্ন দপ্তরের কর্মকর্তা, চেয়ারম্যানবৃন্দ, সহকারী কমিশনার (ভূমি), আশাশুনি থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা, কমিটির সদস্যবৃন্দ এবং এনজিও প্রতিনিধিদের সাথে করোনা প্রতিরোধ, আইন শৃঙ্খলা ও এনজিও বিষয়ক সভায় মিলিত হন। সদস্য, কর্মকর্তা ও চেয়ারম্যানবৃন্দ যিনি যেখানে ছিলেন সেখান থেকে অন লাইনে যুক্ত হয়ে সভায় অংশ নেন এবং মতামত শ্রবন ও মতামত ব্যক্ত করেন।

প্রতাপনগরে ১৫শ’ মানুষরের মাঝে ত্রাণ বিতরণ

প্রতাপনগরে ১৫শ’ মানুষরের  মাঝে ত্রাণ বিতরণ




আহসান  উল্লাহ  বাবলু  আশাশুনি ( সাতক্ষীরা) প্রতিনিধি ঃ আশাশুনি উপজেলার প্রতাপনগর ইউনিয়নে ঘুর্ণিঝড় আম্ফানে ক্ষতিগ্রস্ত অসহায় পরিবারের মাঝে ত্রাণ বিতরণ করা হয়েছে। সোমবার (২২ জুন) সকালে ইউনিয়ন পরিষদের উদ্যোগে সামাজিক দূরত্ব বজায় রেখে এত্রাণ বিতরণ করা হয়। 
মাননীয় প্রধানমন্ত্রী জননেত্রী শেখ হাসিনার সার্বিক সহযোগিতায় ও সাতক্ষীরা জেলা প্রশাসক এস এম মোস্তফা কামালের তত্ত্বাবধানে ৩, ৪ ও ৫ নং ওয়ার্ডের হতদরিদ্র পরিবারের মাঝে সরকারি বিধি মোতাবেক ১০ কেজি করে চাল বিতরণ করা হয়। ত্রাণ বিতরণ কার্যক্রমের উদ্বোধন করেন, আশাশুনি উপজেলা আওয়ামীলীগের সহ -সভাপতি ও প্রতাপনগর ইউনিয়ন আওয়ামীলীগের সভাপতি ইউপি চেয়ারম্যান শেখ জাকির হোসেন। উপজেলা ভাইস চেয়ারম্যান অসীম বরণ চক্রবর্তী ত্রাণ বিতরণ কার্যক্রম পরিদর্শন করেন এবং সামাজিক দূরত্ব বজায় রাখার ব্যাপারে সকলকে সরকারি নির্দেশনা সম্পর্কে সতর্ক করেন। এসময় ট্যাগ অফিসার উপজেলা মাধ্যমিক শিক্ষা অফিসের একাডেমীক সুপার ভাইজার হাসানুজ্জামান, ইউপি সদস্য, গ্রাম পুলিশ, রাজনৈতিক ও গন্যমান্য ব্যক্তি বর্গ উপস্থিত ছিলেন।

আশাশুনি স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে শিক্ষার্থীদের স্বাস্থ্য উন্নয়নে সভা

আশাশুনি স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে শিক্ষার্থীদের  স্বাস্থ্য উন্নয়নে সভা



আহসান  উল্লাহ  বাবলু আশাশুনি ( সাতক্ষীরা) প্রতিনিধি: 
 আশাশুনি স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে বিদ্যালয়ের ছাত্র- ছাত্রীদের ব্যক্তিগত স্বাস্থ্য উন্নয়ন বিষয়ক উদ্বুদ্ধকরণ সভা অনুষ্ঠিত হয়েছে। সোমবার (২২ জুন) দুপুরে উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্স মিলনায়তনে এ সভা অনুষ্ঠিত হয়।  
উপজেলা স্বাস্থ্য ও পরিবার পরিকল্পনা কর্মকর্তা ডাঃ সুদেষ্ণা সরকারের সভাপতিত্বে সভায় প্রধান অতিথি ছিলেন, সিভিল সার্জন ডাঃ হুসাইন শাফায়াত। সিনিয়র স্বাস্থ্য শিক্ষা অফিসার (সিভিল সার্জন অফিস, সাতক্ষীরা) পুলক চক্রবর্তীর সঞ্চালনায় প্রধান অতিথি কার্যক্রমের শুভ উদ্বোধন করেন। এসময় আশাশুনি স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সের বিভিন্ন স্তরের কর্মকর্তা কর্মচারীগণ অংশ নেন।

ঝিনাইদহে কালীগঞ্জে পানিতে ডুবে ৩ বছরের শিশুর মৃত্যু,

ঝিনাইদহে কালীগঞ্জে পানিতে ডুবে ৩ বছরের শিশুর মৃত্যু,





খোন্দকার আব্দুল্লাহ বাশার, ঝিনাইদহ জেলা প্রতিনিধি। 



ঝিনাইদহের কালীগঞ্জে পুকুরের পানিতে ডুবে রোজিনা নামে সাড়ে ৩ বছরের এক কন্যা শিশুর মৃত্যু হয়েছে। সোমবার(২২ জুন) বিকালে উপজেলার বালিয়াডাঙ্গা গ্রামে এ ঘটনাটি ঘটে।
নিহতের পরিবার সূত্রে জানাযায়, বালিয়াডাঙ্গা পূর্বপাড়া গ্রামের বাবুল বিশ্বাসের শিশু কন্যা রোজিনা বিকালে খেলতে খেলতে বাড়ি থেকে বের হয়ে পাশের একটি পুকুরে পড়ে ডুবে যায়। কিছু সময় পর পরিবারের লোকজন তাকে না পেয়ে খোজাখুজি শুরু করে। পরে বাড়ির সামনে পুকুরে শিশুটির লাশ ভাঁসতে দেখে স্থানীয়রা উদ্ধার করে।
কালীগঞ্জ থানার অফিসার্স ইনচার্জ মাহফুজুর রহমান মিয়া পানিতে ডুবে শিশু মৃত্যুর বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন।

উলিপুরে রেল পথ বিভাগের ৭০ হাজার টাকা মূল্যের গাছ কেটে নেয়ার অভিযোগ

উলিপুরে রেল পথ বিভাগের ৭০ হাজার টাকা মূল্যের  গাছ কেটে নেয়ার অভিযোগ



কৃষ্ণ সরকার পীযূষ, ভ্রাম্যমাণ প্রতিনিধি: কুড়িগ্রামের উলিপুরে রেল পথ বিভাগের প্রায় ৭০ হাজার টাকা মূল্যের দুটি গাছ কেটে নেয়ার অভিযোগ উঠেছে।

ঘটনাটি ঘটেছে, সোমবার (২২ জুন) বিকালে মিনাবাজার নামকস্থানে। এ ঘটনায় থানা পুলিশ কর্তনকৃত গাছের গুড়ি জব্দ করে থানায় নিয়ে আসেন।

জানা গেছে, উপজেলার পান্ডুল ইউনিয়নের মিনাবাজার এলাকায় কুড়িগ্রাম-চিলমারী মিটার গেজ রেল পথের ধারে প্রায় ৭০ হাজার টাকা মূল্যের দুইটি ইউক্লিপ্টার্স গাছ ধরনীবাড়ী ইউনিয়নের রুপার খামার গ্রামের জহুর উদ্দিনের পুত্র রফিকুল ইসলাম (৫৫) কর্তন করেন। পরে তা ‘ছ’ মিলে নেয়ার প্রস্তুতির সময় খবর পেয়ে থানা পুলিশ ঘটনাস্থলে গিয়ে গাছের গুড়ি গুলো
আটক করেন। এ সময় রফিকুল ইসলাম সটকে পড়েন।

উলিপুর রেল ষ্টেশন মাষ্টার আরিফুল ইসলাম ঘটনার সত্যতা স্বীকার করে বলেন, বিষয়টি উর্দ্ধতন কর্তৃপক্ষকে জানানো হয়েছে। উনাদের নিদের্শনা মোতাবেক প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে।

উলিপুর থানার অফিসার ইনচার্জ মোয়াজ্জেম হোসেন জানান, উপজেলা নির্বাহী অফিসারের নির্দেশে ঘটনাস্থলে অফিসার পাঠানো হয়েছে। কর্তনকৃত গাছের গুড়ি জব্দ করে থানায় নিয়ে আসা হয়েছে।

উপজেলা নির্বাহী অফিসার মোঃ আব্দুল কাদের বলেন, গোপন সংবাদের ভিত্তিতে পান্ডুল ইউনিয়নের ভূমি সহকারী কর্মকর্তাকে ঘটনাস্থলে পাঠানো হয়। সেখানে সরকারি গাছ কর্তনের ঘটনার সত্যতা পাওয়ার পর থানা পুলিশকে খবর দেয়া হয়। যেহেতু গাছ গুলি সরকারি সম্পদ তাই দ্রুতই আইনগত ব্যবস্থা নেয়া হবে।

মোংলায় কাউন্সিলর সহ ১৪ জনকে জরিমানা করলো ভ্রাম্যমাণ আদালত

মোংলায় কাউন্সিলর সহ ১৪ জনকে জরিমানা করলো ভ্রাম্যমাণ আদালত




মোঃএরশাদ হোসেন রনি, মোংলা       

করোনা পরিস্থিতিতে মোংলায় আইন অমাণ্যকারীদের বিরুদ্ধে অভিযান চালিয়ে ১৪ জনকে অর্থদন্ড দিয়েছে ভ্রাম্যমান আদালত। এসময় নিয়ম ভঙ্গ করে খাবার বিক্রি করায় হোটেল প্যারডাইসের মালিক ও মোংলা পোর্ট পৌর সভার ৮ নং ওয়ার্ড এর কাউন্সিলর খোরশেদ আলমকে ও অর্থ দন্ড দেয়া হয়।

সোমবার (২২ জুন) দুপুরে শহরের বিভিন্ন স্থানে পথযাত্রীদের মাস্ক ব্যবহার না করা ও মোটরসাইকেলের প্রয়োজনীয় কাগজপত্র না থাকায়  মোটরগাড়ী চালকদের এ অর্থ দন্ড দেওয়া হয়।ভ্রাম্যমান আদলতের মাধ্যমে এ অর্থদণ্ড বা জরিমানা  অভিযান পরিচালনা করেন মোংলা উপজেলার সহকারী কমিশনার (ভূমি) নয়ন কুমার রাজবংশি। 

এ সময় সহকারী কমিশনার (ভূমি)নয়ন কুমার রাজবংশি বলেন, করোনার এই মহামারীতে আইন অমাণ্যকারীদের বিরুদ্ধে এ অভিযান অব্যাহত থাকবে। পৌর কাউন্সিলর ও হোটেল মালিক খোরদেশ আলম আইন অমান্য করে দুপুর ২ টার পর হোটেল খোলা রাখায় তাকেও জরিমানা করা হয়েছে বলেও তিনি জানান,

এসময় ভ্রাম্যমান আদালতের মাধ্যমে১৪ জনকে ৭৩০০ টাকা জরিমানা করা হয়।

"শৈলকুপায় কে.জি. এম. ব্লাড ব্যাংকের দুই দিন ব্যাপি বৃক্ষরোপন কর্মসূচি "

"শৈলকুপায় কে.জি. এম. ব্লাড ব্যাংকের দুই দিন ব্যাপি বৃক্ষরোপন কর্মসূচি "



সম্রাট হোসেন, শৈলকুপা উপজেলা প্রতিনিধি( ঝিনাইদহ) 

 আজ ২২ শে জুন রোজ সমবার, "গাছ লাগান পরিবেশ বাঁচান স্লোগান" কে সামনে রেখে 
 কবি গোলাম মোস্তফা ব্লাড ব্যাংকের পক্ষহতে প্রথম বারের মত ২ দিন ব্যাপি বৃক্ষরোপন কর্মসূচি গ্রহণ করা হয় । আজ  ১ম দিনে, শৈলকুপা উপজেলার ২ নং মির্জাপুর ইউনিয়নের বড়দাহ, সিরিপুর গ্রামে ও জামে মসজিদে এবং আলমডাঙ্গা গ্রামে ও জামে মসজিদে আলমডাঙ্গা মাধ্যমিক বালিকা বিদ্যালয়ে কিছু গাছ রোপন করা হয় এবং বিতরণ করা হয়।  এই কর্মসূচির আয়োজন  করেন ব্লাড ব্যাংকের প্রতিষ্ঠাতা সদস্য মোঃ পলাশ হোসেন, আল আমিন, জিহান, মাসুম, মুহায়মিন সহ আরো অনেকে। এই বৃক্ষরোপন কর্মসূচি আগামী ২৩/০৬/২০২০ রোজ মঙ্গলবার পর্যন্ত চলমান থাকবে।  
নিজে বাঁচুন দেশ বাঁচান গাছ লাগান পরিবেশ বাঁচান।       



কে,জি,এম ব্লাড ব্যাংক ভাটই বাজার শৈলকুপা ঝিনাইদহ।  যোগাযোগ :  ০১৩১৬৬৫৭৭৭১

কাজীপুরে নদীর তীঁর সংরক্ষন কাজের নিকট মাটি কাটায় সংরক্ষন কাজ হুমকিতে

কাজীপুরে  নদীর তীঁর সংরক্ষন কাজের নিকট মাটি কাটায় সংরক্ষন কাজ হুমকিতে



মাসুদ রানা সিরাজগঞ্জ জেলাপ্রতিনিধিঃ  কাজীপুরের সদর ইউনিয়নের সাউদটলা এলকায় যমুনা নদীতীঁর সংরক্ষন কাজের পাশঘেঁসে মাটি কাটায় তীঁর সংরক্ষন কাজ হুমকির মূখে পড়ার আশংকা রয়েছে। ২২ জুন সোমবার সরেজমিনে গিয়ে দেখা যায় সদর ইউনিয়নের ৩ নং স্পারের ভাটিতে নদীতীঁর সংরক্ষন কাজের মাত্র ৫০ গজ ভিতরের অংশেরজমি  থেকে ভিটিমাটি কেটে জি ও ব্যাগে ভরা হচ্ছে।জানা গেছে, মেসার্স নুরুল হোসেন  নামের একটি ঠীকাদারি প্রতিষ্ঠান  আসন্ন বর্ষায়  সংরক্ষন কাজে এমারজেন্সি ড্যাম্পিং এর জন্য জি ও ব্যাগ ভরা হচ্ছে। এছাড়া  জি ও ব্যাগ ভরার জন্য বালি ব্যবহারের নিয়ম থাকলেও  ঠীকাদার নিয়ম না মেনে  জমি থেকে ভিটি মাটি কেটে তা জি ও ব্যাগে ভরছে।।  এতে করে  একদিকে নদীতীঁর সংরক্ষন কাজ হুমকিতে পড়বে পাশাপাশী ভরাটকৃত জি ও ব্যাগ মান সম্মত হবে না।  এ বিষয়ে দায়িত্বরত এস ও হায়দার আলী জানান ভরাটকৃত মাটি আনলোট করার জন্য ঘটনাস্থলে লোক পাঠিয়েছি

হবিগঞ্জ জেলায় করোনা আক্রান্তের সংখ্যা লাফিয়ে লাফিয়ে বাড়ছে আজও (৩২) জন আক্রান্ত,

হবিগঞ্জ জেলায় করোনা আক্রান্তের সংখ্যা লাফিয়ে লাফিয়ে বাড়ছে আজও (৩২) জন আক্রান্ত,



লিটন পাঠান হবিগঞ্জ জেলা প্রতিনিধি

হবিগঞ্জ জেলায় করোনা আক্রান্তের সংখ্যা লাফিয়ে লাফিয়ে বাড়ছে। আজ সোমবার (২২-জুন) একদিনে (৩২) জন করোনায় আক্রান্ত হয়েছেন এ নিয়ে হবিগঞ্জ জেলায় মোট আক্রান্ত (৪১৩) জন, সুস্থ্য (১৬৬) জন আর এক শিশুসহ মৃত্যু হয়েছে ৫জনের। আক্রান্তদের মধ্যে রয়েছে হবিগঞ্জ সদরে (১৭) মাধবপুর (৬)জন বানিয়াচং (৩) আজমিরীগঞ্জ (৩) চুনারুঘাট (২) ও নবীগঞ্জ (১) জন।

ঢাকা থেকে আসা রিপোর্টে (৩২) জনের করোনা শনাক্তের বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন ডেপুটি সিভিল সার্জন ডাঃ মুখলেছুর রহমান উজ্জ্বল। তিনি সকলকে আরও অধিকতর সতর্ক হওয়ার আহ্বান জানিয়েছেন।
এদিকে হবিগঞ্জ পৌরসভার ৬ ও ৯ নং ওয়ার্ডে, চুনারুঘাট পৌরসভা এবং উপজেলার দেওরগাছ উবাহাটা ও রানীগাও ইউনিয়ন মাধবপুর পৌরসভা, 

আজমিরীগঞ্জ ও বাহুবল উপজেলা সদরকে রেড জোন ঘোষণা করে রোববার দিবাগত রাতে সাধারণ ছুটি ঘোষণা করে প্রজ্ঞাপন জারি করেছে জন প্রশাসন মন্ত্রণালয়। তবে জরুরি পরিসেবা এ সাধারণ ছুটির আওতার বাইরে থাকবে

সাতক্ষীরা করোনায় সেঞ্চুরী!

সাতক্ষীরা করোনায় সেঞ্চুরী!




আজহারুল ইসলাম সাদীঃ
সাতক্ষীরা জেলায় আজ পূর্ণ হলো ১০০ জন করোনা আক্রান্তের সংখ্যা।
তার মধ্যে আজ আক্রান্ত হয়েছে ৫ জন।
আজ সাতক্ষীরায় যে ৫ জন করোনায় আক্রান্ত হয়েছেন গত ১৯ জুন তাদের নমুনা সংগ্রহ করা হয়।
আজ সোমবার ২২ জুন দুপুরে তাদের রিপোর্ট এসেছে।
আক্রান্তরা হল সাতক্ষীরা শহরের পলাশপোল এলাকার একই পরিবারের ৩ জন এরা হলেন- আমেনা খাতুন, আহছানউল্লাহ ও জিহান।
শহরের মধ্য কাটিয়া এলাকার আরিফুল ইসলাম জেমস্।
পিজনা নামের অপর একজনের রিপোর্ট পজেটিভ এসেছে তবে তার ঠিকানা পাওয়া যায়নি।
আজ বিকালে সাতক্ষীরা পুলিশের করোনা রেসপ্স টিম তাদের বাড়ি লকডাউন করে দিয়েছে।
এ বিষয়টি সাতক্ষীরা সিভিল সার্জন অফিসের মেডিকেল অফিসার ডাঃ জয়ন্ত সরকার নিশ্চিত করেছেন।
তিনি আরো জানিয়েছেন এ পর্যন্ত সাতক্ষীরা জেলা থেকে ১৫৯৫ জনের নমুনা সংগ্রহ করে পাঠানো হয়েছে, তার মধ্যে ১১৮২ জনের নমুনা এসেছে।

কুয়েতে করোনা ভাইরাসের সর্বশেষ তথ্য

কুয়েতে করোনা ভাইরাসের সর্বশেষ তথ্য





দাইয়ানুর রহমার মিষ্টারনুরঃ


২২জুন ২০২০,সোমবার,কুয়েত। 
কুয়েত স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয়ের মুখপাত্র ড. আব্দুল্লাহ আল-সানাদ নিয়মিত ব্রিফিংয়ে এ জানান-
কুয়েতে করোনা ভাইরাসে ২৪ঘন্টায় 
আজ নতুন আক্রান্ত হয়েছে ৬৪১জন।
মোট আক্রান্তের সংখ্যা বেড়ে  দাঁড়িয়েছে ৪০২৯১জনে।
চিকিৎসাধীন রয়েছে ৮১৯১জন।
আজ সুস্থ হয়েছে ৫৩০জন।
মোট সুস্থ্যতা লাভ করেছে ৩১৭৭০জন।
আইসিইউতে রয়েছে ১৮১জন। 
 আজ ৪জন নাগরিক মারা গিয়েছে। 
মোট মৃত্যুর সংখ্যা দাড়িয়েছে ৩৩০জনে। 
কুয়েতের করোনা ভাইরাসে আক্রান্ত আজকের পরিসংখ্যান নিম্নরুপঃ
 কুয়েত-৩৮৩,অন্যান্য -২৫৮,মোট ৬৪১।
কুয়েতি ৫৯.৭৫% ও অন্যান্য ৪০.২৫% সর্বমোট আক্রান্ত ৪০২৯১।
কুয়েতে করোনা ভাইরাসে পরিস্থিতি স্বাভাবিক ভাবে ফিরতে শুরু করেছে। ফলে দেশটির সংসদীয় কমিটির সিদ্ধান্ত অনুযায়ী লকডাউন মুক্ত হয়েছে যথাক্রমে হাওয়াল্লী, নুগরা,ময়দান হাওয়াল্লী ও খাইতেন অঞ্চল।এছাড়া ফরওয়ানিয়া,জিলিব ও মাহবুলা অঞ্চলে যথারীতি লকডাউন চলমান রয়েছে ।
 কুয়েতের সর্বএে "জরুরী অবস্থা' সময় পরিবর্তন করেছে। নতুন সময় সন্ধ্যা ৭টা থেকে ভোর ৫টা পর্যন্ত জারী করেছে দেশটির মন্ত্রী পরিষদ বৈঠকে।  
বৃহস্পতিবার কুয়েতের প্রধানমন্ত্রী শেখ সাবাহ্ আল-খালিদ আল-সাবাহ'র সভাপতিত্বে অনুষ্ঠিত মন্ত্রী পরিষদের বৈঠকে এই সিদ্ধান্ত গৃহীত হয়েছে।
কুয়েতে আবাসিক এলাকা গুলোতে সামাজিক দূরত্ব বজায় রেখে নামাজ পড়ার জন্য ১০জুন ২০২০ বুধবার যোহর থেকে মসজিদ খুলে সংশ্লিষ্ট ব্যক্তিবর্গ জামাতে নামাজ আদায় করে। কিন্তু কুয়েত সিটিসহ বিভিন্ন জায়গায় জনসাধারণের এখনো জামাতে নামাজ আদায় করা নিষেধাজ্ঞা রয়েছে।  
প্রবাসী ভাই ও বন্ধুগণ স্হানীয় আইন মেনে চলুন। ঘর থেকে বের হওয়া থেকে বিরত থাকুন এবং সামাজিক দূরত্ব মেনে চলুন।
সূত্রঃস্বাস্হ্য মন্ত্রণালয় কুয়েত।

সিরাজগঞ্জে ক্ষুদ্র নৃ-গোষ্ঠীর শিক্ষার্থীদের শিক্ষা বৃত্তির চেক হস্তান্তর

সিরাজগঞ্জে ক্ষুদ্র নৃ-গোষ্ঠীর শিক্ষার্থীদের শিক্ষা বৃত্তির চেক হস্তান্তর




মাসুদ রানা সিরাজগঞ্জ জেলা প্রতিনিধিঃ
সিরাজগঞ্জে  “বিশেষ এলাকার জন্য উন্নয়ন সহায়তা” শীর্ষক কর্মসূচির আওতায় উচ্চ শিক্ষায় অধ্যয়নরত ক্ষুদ্র নৃ-গোষ্ঠীর শিক্ষার্থীদের মধ্যে শিক্ষা বৃত্তি চেক প্রদান করা হয়েছে।
সোমবার ( ২২ জুন)  সকাল সারে ১০ টায়  শহীদ  শামসুদ্দিন  সম্মেলনে  কক্ষে  জেলা প্রশাসক ড. ফারুক  আহাম্মদ   ২০১৯-২০২০ অর্থ বছরে চেক হস্তান্তর করেন। এটি প্রধানমন্ত্রীর কার্যালয় হতে সমতলের ক্ষুদ্র নৃ-গোষ্ঠীর জীবনমান উন্নয়নের জন্য বিশেষ প্রকল্প।  চেক হস্তান্তর কালে জেলা প্রশাসক বলেন, আমরা যখন পড়াশোনা করেছি তখনকার সরকার এভাবে আমাদের সহায়তা করতে পারেনি। কিন্তু বর্তমান সরকার সব শ্রেণির মানুষের জন্য কাজ করে যাচ্ছে। সমতলের ক্ষুদ্র নৃ-গোষ্ঠী শিক্ষার্থীরা যেন পিছিয়ে না পড়ে তার জন্য প্রধানমন্ত্রীর কার্যালয় থেকে শিক্ষাবৃত্তি দেয়া হচ্ছে।
তিনি বলেন, সরকার সব ধরনের সুযোগ তৈরি করে দিচ্ছে। কিন্তু নিজের কাজটা নিজেকেই করতে হবে। প্রতিযোগিতার এই সমাজে নিজেকে পিছিয়ে রাখলে হবে না। নিজেকে এমনভাবে প্রস্তুত করতে হবে যেন কোন সীমাবদ্ধতা আগামীর জীবন ও জীবিকা ঝুঁকির মধ্যে ফেলতে না পারে।
এসময় অতিরিক্ত  জেলা  প্রশাসক  সার্বিক  মোঃ  ফিরোজ  মাহমুদ  সহ  ৩ টি উপজেলার শিক্ষার্থী রা  উপস্থিত  ছিলেন। 
বৃত্তি প্রদান অনুষ্ঠানে সিরাজগঞ্জ জেলার উল্লাপাড়া, রায়গঞ্জ , তাড়াশ উপজেলা হতে আগত ১৭২জন শিক্ষার্থীর মধ্যে প্রত্যেককে ২৫ হাজার টাকার চেক হস্তান্তর করা হয়।

মোহাম্মাদ নাসিম স্বরণে বাহুকা কলেজ ও কারিগরি উচ্চবিদ্যালয়ে আলোচনা ও দোয়া মাহফিল

মোহাম্মাদ নাসিম স্বরণে বাহুকা কলেজ ও কারিগরি উচ্চবিদ্যালয়ে আলোচনা ও দোয়া মাহফিল




মাসুদ রানা সিরাজগঞ্জ জেলাপ্রতিনিধি:
জাতীয় চার নেতার অন্যতম শহিদ ক্যাপ্টেন এম মনসুর আলীর উত্তরসূরী বাংলাদেশ আ.লীগের সভাপতি মন্ডলির সদস্য ও চৌদ্দ দলের সমন্বয়ক কাজিপুরের এমপি সদ্য প্রয়াত মোহাম্মদ নাসিমের আত্মার শান্তি কামনায় বাহুকা কলেজ ও বাহুকা কারিগরি উচ্চ বিদ্যালয়ের আয়োজনে এক আলোচনা সভা ও দোয়া অনুষ্ঠিত হয়েছে। সোমবার (২২জুন) বাদ জহর কলেজ হল রুমে আয়োজিত অনুষ্ঠানে সভাপতিত্ব করেন উক্ত কলেজের অধ্যক্ষ মোঃ আমিনুল ইসলাম । সভা টি পরিচালনা করেন কারিগরি উচ্চ বিদ্যালের প্রধান শিক্ষক মোঃ হাফিজুর রহমান ও ফিরোজ মাহমুদ। এ সময় উপস্থিত ছিলেন সাবেক সিরাজগঞ্জ সরকারি কলেজের অধ্যক্ষ ও বাহুকা কলেজের সভাপতি মোঃ মোনয়ার হোসেন, জেলা পরিষদের সদ্স্য গোলাম রব্বানী তালুকদার,বাংলাদেশ ছাত্রলীগের কেন্দ্রী কমিটির সহ সভাপতি আরিফুল ইসলাম আরিফ, মাসুদ রানা সিরাজগঞ্জ জেলা আঃসেচ্ছাসেবক লীগের যুগ্ন সাধারন সম্পাদক, সিরাজগঞ্জ জেলা ছাএলীগের সাধারন সম্পাদক আব্দুল্লা বিন আহম্মেদ, জেলা ছাএলীগের সহ সম্পাদক জুয়েল সামি, রতনকান্দি ইউপি চেয়ারম্যান আনোয়ার হোসেন, ভারপ্রাপ্ত সভাপতি মোঃ সাইদুল ইসলাম জুরান, সাংগঠনিক সম্পাদক আলী হোসেন, যুগ্ন সাধারন সম্পাদক রফিকুল ইসলাম,বিপল্প হোসেন, ছোনগাছা ইউনিয়ন আঃলীগের সাধারন সম্পাদক মোহাম্মাদ আলী জিন্না, সদর উপোজেলা আওয়ামী সেচ্ছাসেবগ লীগের ছিনিয়ার সহ সভাপতি এম এইস মিল্টন, সাবেক ইউনিয়ন যুবলীগের সাধারন সম্পাদক আসলাম উদ্দিন সেখ, ইউনিয়ন যুবলীগের সভাপতি মোঃ জাহাঙ্গীর আলম, সাধারণ সম্পদক বুলবুল আহম্মেদ ভুট্টু, আওয়ামী সেচ্ছাসেবক লীগের ভারপ্রাপ্ত সভাপতি সোহেল রানা সহ প্রমূখ। আলোচনা সভায় অতিথিরা কান্নায় ভেংঙ্গে পরে বলেন নাসিম আমাদের শুধু নেতা ছিলেন না তিনি ছিলেন সিরাজগঞ্জ কাজিপুর তথা উত্তর বঙ্গের অভিবাগ তিনি আমাদের ছেরে চলে গেছেন কিন্ত তার আর্দশ বুকে ধারন করে আমাদের বেঁচে থাকতে হবে। এ সময় মুঠো ফোনে নেতা কর্মীদের উদ্দেশে কথা বলেন এবং দোয়া চান তানভির শাকিল জয় সাবেক সংসদ সদ্স্য। তিনি আর ও বলেন আমার বাবা আপনাদের পাশে সব সময় ছিলেন। দোয়া করবেন আমি ও যেন আপনাদের ভালোবাসা নিয়ে বেঁচে থাকতে পারি। অনুষ্ঠানের দোয়া পরিচালনা করেন অত্র কলেজের সহকারী অধ্যক্ষ মোঃ মোনয়ার হোসেন। 

ভোলার বোরহানউদ্দিনে নিখোঁজের তিন দিন পর কলেজ ছাত্রের মরাদেহ উদ্ধার

ভোলার বোরহানউদ্দিনে নিখোঁজের তিন দিন পর কলেজ ছাত্রের মরাদেহ উদ্ধার





মোঃ আওলাদ হোসেন 
জেলা প্রতিনিধি ভোলা (দৌলতখান) 

আজ কাল গুম,খুন,হত্যা,ছিনতাই যেন নিত্য নৈমিত্তিক ব্যাপার হয়ে দাড়িয়েছে।
 ভোলার বোরহানউদ্দিনে নিখোঁজের দুইদিন পর মাটি খুঁড়ে গর্ত থেকে সুমন (২৩)  নামে কলেজ ছাত্রের  লাশ উদ্ধার করেছে বোরহানউদ্দিন থানা পুলিশ ৷ এসময় মিঠু (২৫) নামের একজনকে আটক করেছে পুলিশ।  সোমবার দুপুরে উপজেলার পক্ষিয়া ইউনিয়নের ৮ নং ওয়ার্ডে মাটির নিচ থেকে তাকে উদ্ধার করা হয় ৷ সে একই ইউনিয়নের ৭ নং ওয়ার্ডের বাসিন্দা মফিজুল মিঞার ছেলে। এর আগে গত শনিবার সন্ধ্যার পর থেকে সে নিখোঁজ হয় ৷ পরে স্থানীয় থানায় সাধারণ ডায়েরী করেন পরিবার ৷ সে বোরহানউদ্দিন সরকারি আব্দুল জব্বার ডিগ্রী কলেজের ডিগ্রী ৩য় বর্ষের ছাত্র ছিল ৷ লালমোহন সার্কেল এ এসপি মোঃ রাসেলুর রহমান জানান, বোরহানউদ্দিন উপজেলার পক্ষিয়া ইউনিয়নের ০৭ নং ওয়ার্ডের মফিজল ইসলামের ছেলে ডিগ্রী পড়–য়া ছাত্র মোঃ সুমন নিখেঁাজের ঘটনায় গত-২১-০৬-২০২০ তারিখ বিকালে একটি জিডি হয় বোরহানউদ্দিন থানায়। জিডি সুত্রে পক্ষিয়া ৮ নং ওয়ার্ডের নাজুর ছেলে মিঠু (২৫) কে আটক করা হয়। আটক মিঠুকে জিজ্ঞাসা বাদ করে তার তথ্যমতে পক্ষিয়া ৮ নং ওয়ার্ড থেকে মাটি খুড়ে সুমনের লাশ উদ্ধার করা হয়েছে। ময়না তদন্তের জন্য লাশ মর্গে প্রেরণ করা হয়েছে। মামলার প্রস্তুতি চলছে।

ঝিনাইদহে ডাবল মার্ডারের ৬ আসামী গ্রেফতার

ঝিনাইদহে ডাবল মার্ডারের ৬ আসামী গ্রেফতার






খোন্দকার আব্দুল্লাহ বাশার 

ঝিনাইদহ জেলা প্রতিনিধিঃ




ঝিনাইদহ সদর উপজেলা হরিশংকরপুর গ্রামের দু গ্রুপের সংঘর্ষে নিহত ডাবল মার্ডারের এজাহারভুক্ত পলাতক ৬ আসামী গ্রেফতার করা হয়েছে। আটককৃতরা হলেন হরিশংকরপুর গ্রামের আব্দুল মালেক মিয়া ছেলে লতা মিয়া (৬৩) , কাজী আবুল হোসেনের ছেলে খালেক (৬১) ও কাজী মোসলেম উদ্দিন(৬৪) মৃত তোজাম শেখের ছেলে তোরাপ শেখ(৪৫) অমৃত আফিল উদ্দীনের ছেলে আজমত শেখ (৬৫)। ও আতিয়ার রহমানের ছেলে দোকানদার জুয়েল রানা(২৭)
ঝিনাইদহ সদর থানার ওসি মিজানুর রহমান জানান, গোপন সংবাদের ভিত্তিতে অভিযান চালিয়ে মাগুরা, কুষ্টিয়া ও শৈলকুপা থেকে পলাতক ৬ আসামীকে গ্রেফতার করা হয়।

ঝিনাইদহে স্বামীর নির্যাতনে ঘর ছাড়া পিতৃ হীন রুমা

ঝিনাইদহে স্বামীর নির্যাতনে ঘর ছাড়া পিতৃ হীন রুমা





খোন্দকার আব্দুল্লাহ বাশার ঝিনাইদহ জেলা প্রতিনিধি,,



যৌতুক একটি সমাজিক ব্যাধি,যৌতুক নেওয়া অপরাধ,এটা জেনেও যৌতুকের জন্য নিজের স্ত্রী রুমাকে শারীরিক মানসিক নির্যাতন করে বাড়ি থেকে বের করে দিয়েছে পাষন্ড স্বামী মোঃ নাজির মিয়া(৩০)।
নাজির মিয়া ঝিনাইদহ সদর উপজেলার মধুহাটি ইউনিয়নের বেড়াশুলা গ্রামের ফকির চানের ছেলে।      
ঘটনার বিবরনে জানা যায়,নাজির মিয়া গত ১ বছর ৭/৮ মাস আগে শ্যামনগর যাদবপুর গ্রামের মৃত সোনা মিয়ার মেয়ে মোছাঃ রুমা খাতুনকে ১ লক্ষ দশ হাজার টাকা যৌতুক নিয়ে বিয়ে করেন। রুমার বাবা না থাকায় মামা বাড়িই সে বড় হয়েছে।
বিয়ের কিছুদিন পর নাজির মিয়া রুমাকে বিভিন্নভাবে চাপ প্রয়োগ করে এবং নির্যাতন চালায় পুনরায় টাকার জন্য।কিন্তূ পিতৃহিন রুমা খাতুন টাকা কোথায় পাবে? অস্বচ্ছল পরিবার যেখানে উপার্যন করার কেউ নেয়।
সেখানে আবার নতুন করে টাকা দিশেহারা হয়ে যায় রুমা। তার পরও সংসারের আসায় পিতৃহীন রুমা ছুটে যায় জিয়ালা গ্রামে মামা হায়দার ডাক্তার  এর কাছে।
এ ব্যাপারে জিয়ালা গ্রামের রুমার মামা হায়দার ডাক্তার বলেন,আমার ভাগ্নিকে জামাই যৌতুকের জন্য নির্যাতন করে। ওর বাবা না থাকায়,আমাদের পরিবারেই সে বড় হয়েছে আমরা তার বিয়ের সময় ১ লক্ষ দশ হাজার টাকা দিয়েছি,এখন জামাই আরও টাকা চায়,আমি ভাগ্নির সুখের কথা চিন্তা করে জামাইকে ব্যবসার জন্য টাকা দিব এই মর্মে কিছুদিন সময় চাই।  
এর পরে রুমা শশুর বাড়ি ফিরে যায়,রুমাকে খালি হাতে দেখে নাজির এবং তার বাবা মা সবাই ক্ষিপ্ত হয়ে পাষবিক নির্যাতন চালায়। এবং বাড়ি থেকে বের করে দেয়,নির্যাতিত রুমা এখন একই গ্রামের রেজাউল দর্জির বাড়িতে ১১ দিন ধরে আশ্রয় নিয়েছে।   
এ ব্যাপারে নাজির বলেন,আমি রুমাকে নির্যাতন করিনি। যৌতুকের প্রশ্নের জবাবে,সে সাংবাদিককে বলেন,উনারা খুশি হয়ে আমাকে যৌতুক দিয়েছে।
ঐ ওয়ার্ডের মেম্বর রসুল মিয়া জানান,শুনেছি বিয়ের পর থেকে এই সংসারে ঝগড়া বিবাদ লেগেই আছে,গত কয়েক দিন ধরেও অব্যাহত আছে।

চুয়াডাঙ্গা জেলা প্রশাসনের পক্ষ থেকে মাস্ক বিতরণ

চুয়াডাঙ্গা জেলা প্রশাসনের পক্ষ থেকে মাস্ক বিতরণ




মোঃকাউসার আলী
চুয়াডাঙ্গা প্রতিনিধি

দিন দিন করোনা ভাইরাস মারাত্মক রুপ ধারণ করছে।কবে নাগাত এই ভাইরাস শেষ হবে তা কেউ জানেনা।এখন পর্যন্ত এই করোনা ভাইরাসের কোনো টিকা আবিষ্কার হয়নি।কিন্তু একমাত্র সামাজিক দূরত্ব ও সচেতনতায় পারে এটা থেকে মুক্ত রাখতে।
তাই বিশ্বব্যাপী নভেল করোনা ভাইরাসের সংক্রমন প্রতিরোধে সচেতনতা বৃদ্ধির লক্ষ্যে চুয়াডাঙ্গা জেলার সুযোগ্য জলা প্রশাসক জনাব মোঃনজরুল ইসলাম সরকার মহোদয় জেলার বিভিন্নস্থানে জনসচেতনতা মূলক প্রচারণা চালান এবং মাস্কবিহীন জনগনের মধ্যে মাস্ক বিতরণ করেন।
এসময় আরো উপস্থিত ছিলেন জেলার সম্মানিত পুলিশ সুপার জনাব জাহিদুল ইসলাম মহোদয়,চুয়াডাঙ্গা জেলার এনডিসি জনাব সিব্বির আহমেদ,জেলা নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট জনাব আমজাদ হোসেন।এসময় তাঁরা সকল জনগনকে সামাজিক দূরত্ব বজায় রেখে চলতে বলেন এবং বিশেষ কোনো কাজ না থাকলে বাড়িতে অবস্থান করতে বলেন।

পর্দার আড়ালের হিরো

পর্দার আড়ালের হিরো




মোঃ নাঈম শেখ সিঙ্গাপুর প্রতিনিধিঃ     
আমরা সবাই আওলাদ ভাইকে গানের শিল্পী হিসেবেই চিনি। তবে এই মহামারীর সময় তিনিও পর্দার আড়ালে থেকে আমাদের জন্য কাজ করে গেছেন। 

আমি যখন হোটেলে থাকতাম তখন রমজান মাস চলছিলো। একদিন আওলাদ ভাই আমাকে কল দিয়ে বললেন, নাঈম ভাই কষ্ট করে আমার রুমের সামনে আসুন। 

সে সচরাচর আমাকে কল দেয় না। সেদিন তার কল পেয়ে তার রুমের সামনে গেলাম। আমাকে দেখেই তিনি বিভিন্ন খাবার আমার হাতে তুলে দিলেন। আমি অবাক হয়ে বললাম আপনি এত খাবার কোথায় পেলেন? 
তিনি বললেন, আছে তবে তারা নিজেদের নাম প্রকাশ করতে চায় না। আমাকে দায়িত্ব দিয়েছে আমি যেন সবার মাঝে এই খাবার গুলো খুব ভাল ভাবে পৌঁছে দেই। 

এরপর রমজান মাসে প্রতিদিন দেখতাম আওলাদ ভাই বিভিন্ন রুমের সামনে দাঁড়িয়ে কলিং বেল চেপে লোকদের হাতে খাবার তুলে দিতেন। প্রতিদিন রুমে রুমে গিয়ে খাবারসহ অন্যান্য জিনিস পৌঁছে দেওয়া সহজ কাজ নয়।

প্রতিদিন ভোরে ৩ টা বাজে সেহেরী এবং বিকালে বিভিন্ন রকমের খাবার এবং যাদের নামাজ পড়ার জায়নামাজ নেই তাদের জায়নামাজ দিয়েছে তাছাড়া লুঙ্গি,সাবান স্যাম্পু, সেভিং ক্রীম, সেভিং রেজার, টুথ পেস্ট, টুথ ব্রাশ আরো অনেক কিছু সবার কাছে পৌঁছে দিতেন। খুব কষ্ট হত একা একা কাজটা করতে তবুও তিনি হাসিমুখে এই কাজটা করতেন।

আমি তাকে একদিন বললাম, ভাই আপনি খুবই ভালো কাজ করছেন। তিনি বললেন, আমি না ভাই, এই খাবার যারা দিচ্ছেন তাদের জন্য দোয়া করবেন। 

আমাদেরকে হোটেল থেকে সিফট করে সরকারি HDB ব্লকে নিয়ে আসে। এখানে এসেও আওলাদ ভাই বিভিন্ন রুমে গিয়ে খাবার পৌঁছে দিচ্ছেন। খাবার কে দিচ্ছে সেটা আসল কথা নয়। আসল কথা হলো লোকজন তার মাধ্যমে বিভিন্ন শুকনো খাবার থেকে শুরু করে অন্যান্য অনেক কিছুই পাচ্ছে।

কোম্পানি আমাদের খাবার দেয়, কিন্তু শুকনো খাবার কিংবা কোন ফল কিনতে পারি না। কারন আমাদের বাহিরে যাওয়া নিষেধ। আওলাদ ভাইয়ের মাধ্যমে শুকনো খাবার পাওয়া যায় এবং ফলও পাওয়া যায়৷ 
এই খাবার রিসিভ করতে অনেক প্রশ্নের সম্মুখীনও হয়েছেন অনেকবার। তারপরেও মানুষের উপকার হবে ভেবে পিছপা হননি।

তবে আওলাদ বলেছে যাহারা এই দুর্যোগ মুহূর্তে গৃহবন্ধী মানুষের পাশে এসে দাঁড়িয়েছে তাদের অনেকের নাম এবং কিছু সংস্থার নাম।

তিনি বলেন, আজলীন ময়েজ ( AZMEEN MOIZ) ও সালিমা ইসমাইল (SALEEMAH Ismail)এরা দু'জন বিভিন্ন সময় বিভিন্ন খাবার ও নিত্যপ্রয়োজনীয় জিনিস দেওয়ার পাশাপাশি কল করে নিয়মিত খোঁজখবর নিতো৷ 

তাছাড়া বেসরকারি এনজিও HOPE INITIATIVE ALLIANCE ও Its rainingraincots ও বিভিন্ন খাদ্য সামগ্রী দেওয়ার পাশাপাশি সবসময় খোঁজখবর নিতো। আমি আপনার মাধ্যমে তাদের সবাইকে আন্তরিক ধন্যবাদ জানাতে চাই। 

কিছু কিছু মানুষ আছেন যারা অন্যের কল্যানে নীরবে কাজ করতেই বেশী পছন্দ করেন। এরা কোনদিন নিজেদের প্রচারণা চান না। অন্যের কল্যানেই তারা সুখ খুঁজে পান৷ পর্দার আড়ালের এইসব মানুষদের জানাই আন্তরিক ধন্যবাদ।

ঝিনাইদহে র‌্যাবের অভিযানে বিপুল পরিমাণ অবৈধ পলিথিন উদ্ধার,

ঝিনাইদহে র‌্যাবের অভিযানে বিপুল পরিমাণ অবৈধ পলিথিন উদ্ধার,





খোন্দকার আব্দুল্লাহ বাশার, ঝিনাইদহ জেলা প্রতিনিধি। 


ঝিনাইদহ র‌্যাব অভিযান চালিয়ে বিপুল পরিমাণ অবৈধ পলিথিন উদ্ধার করেছে। সোমবার দুপুরে শহরের নতুন হাটখোলা এলাকা থেকে এ পলিথিন উদ্ধার করা হয়। 
ঝিনাইদহ র‌্যাব-৬ এর কোম্পানী কমান্ডার ও অতিরিক্ত পুলিশ সুপার মাসুদ আলম জানান, ঝিনাইদহ শহরের নতুন হাটখোলা বাজারে কয়েকজন ব্যবসায়ী বিপুল পরিমাণ অবৈধ পলিথিন মজুদ করেছে এমন সংবাদের ভিত্তিতে সেখানে অভিযান চালানো হয়। এসময় দুটি দোকান থেকে বিপুল পরিমাণ পলিথিন উদ্ধার করা হয়। 
এসময় জেলা প্রশাসনের নির্বাহী ম্যাজিষ্ট্রেট ও ভ্রাম্যমান আদালতের বিচারক মোঃ হেদায়েত উল্যাহ আদালত বসিয়ে তাদেরকে ১৯৯৫ সালের পরিবেশ সংরক্ষণ আইনে দুটি দোকানের মালিককে মোট ৭৫ হাজার টাকা জরিমানা করা হয়েছে। উদ্ধারকৃত পলিথিনের মূল্য আনুমানিক প্রায় ৫ লাখ টাকা বলে জানা গেছে। পরে উদ্ধারকৃত পলিথিন জব্দ করা হয়।
এসময় উপস্থিত ছিলেন জেলা জাতীয় ভোক্তা অধিকার সংরক্ষণ অধিদপ্তরের সহকারি পরিচালক সুচন্দন মন্ডলসহ র‌্যাব সদস্যবৃন্দ।

আশাশুনির বিভিন্ন ব্যাংকে মানছেন না সামাজিক দূরত্ব আর্থিক লেনদেনের উৎস পড়া ভিড়

আশাশুনির বিভিন্ন ব্যাংকে মানছেন না সামাজিক দূরত্ব আর্থিক লেনদেনের উৎস পড়া ভিড়




 আহসান উল্লাহ বাবলু আশাশুনি ( সাতক্ষীরা)   প্রতিনিধিঃ আশাশুনির বিভিন্ন ব্যাংকে  সামাজিক দূরত্ব মানছেন না আর্থিক লেনদেনে উচ্ছে পড়া ভিড় লক্ষ্য করা গেছে! এ ব্যাপারে উপজেলা প্রশাসনের কোন পদক্ষেপ নেই! ফলে এই অবস্থা চলতে থাকলে মহামারী করোনাভাইরাস মোকাবেলা করা সম্ভব হবে! এ বিষয়ে সোমবার সকালে খোঁজখবর নিতে আশাশুনি উপজেলার সরকারি ও বেসরকারি প্রতিষ্ঠানের সামাজিক দূরত্ব বজায় থাকলেও আশাশুনি জনতা ব্যাংক, কৃষি ব্যাংক ও সোনালী ব্যাংকে বয়স্ক, বিদুফা ও প্রতিবন্ধী ভাতা সহ বিভিন্ন আর্থিক লেনদেন করতে আসা মানুষের উপচে পড়া ভিড়! হলে একে অপরের গায়ে সাথে ঠেসে ঠেসে করে দাঁড়াতে গিয়ে নিচে পড়ে যাচ্ছে! ফলে কোনভাবেই সামাজিক গুরুত্ব কেউই মেনে চলছে না! এ ব্যাপারে সোনালী ব্যাংক ম্যানেজার তাপস দেবনাথ এর সাথে কথা বললে  তিনি এ প্রতিবেদককে বলেন আমার করার কিছু নেই! এত বলছি কিন্তু কেউ কথা শুনছে না সোমবার সকালে সোনালী ব্যাংকে উপস্থিত হয়ে এ ছবিটি তোলা হয়! হলে মহামারী করোনাভাইরাস মোকাবেলায়  সামাজিক দূরত্ব বজায় রেখে চলাফেরা করার অনুরোধ জানানো হয়েছে!

বেনাপোল সীমান্তে বাংলাদেশীকে নির্যাতন করে নদীর পাড়ে ফেলে রাখলো বিএসএফ

বেনাপোল সীমান্তে বাংলাদেশীকে নির্যাতন করে নদীর পাড়ে ফেলে রাখলো বিএসএফ




তুহিন হোসেন, বেনাপোল প্রতিনিধি: 

যশোরের বেনাপোল সীমান্ত থেকেন রাজু (২৪) নামে এক বাংলাদেশি যুবককে আহত অবস্থায় উদ্ধার করেছে বর্ডার গার্ড বাংলাদেশ (বিজিবি) সদস্যরা। উদ্ধারের পর তাকে শার্শা উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে নিয়ে পুলিশ পাহারায় চিকিৎসা দেয়া হচ্ছে। বেনাপোল পোর্ট থানার পুটখালী সীমান্তের ইছামতি নদীর পাড় থেকে তাকে উদ্ধার করা হয়। আহত রাজু শার্শা থানার লক্ষনপুর ইউনিয়নের গোড়পাড়া গ্রামের আব্দুর রহিমের ছেলে।

জানা যায়, সীমান্তের অবৈধ পথে বিনা পাসপোর্টে ভারত থেকে বাংলাদেশে প্রবেশের সময় আংরাইল ক্যাম্পের বিএসএফ আটক করে তার উপর নির্যাতন চালায়। পরে তাকে ইছামতি নদীর তীরে ফেলে রেখে যায়। স্থানীয়রা বিজিবিকে খবর দিলে বিজিবি সদস্যরা এসে রাজুকে উদ্ধার করে।

খুলনা ২১ বিজিবি ব্যাটালিয়নের পুটখালী বিজিবি ক্যাম্প কমান্ডার সুবেদার জাকির হোসেন জানান, ভারত সীমান্তের ইছামতি নদীর তীরে এক যুবক পড়ে আছে এলাকাবাসীর মাধ্যমে এমন খবর পেয়ে বিজিবির একটি টহল দল গিয়ে তাকে উদ্ধার করে। ভারত থেকে অবৈধভাবে বাংলাদেশে প্রবেশ করার কারণে তার বিরুদ্ধে অবৈধ অনুপ্রবেশ আইনে মামলা দিয়ে বেনাপোল পোর্ট থানায় সোপর্দ করা হয়েছে বলে তিনি জানান।

বেনাপোল পোর্ট থানার এএসআই জেসমিন আক্তার জানান, বিজিবি সদস্যরা রাজু নামে এক যুবককে অবৈধভাবে বাংলাদেশে প্রবেশের অভিযোগে মামলা দিয়ে থানায় সোপর্দ করেছে। তার শারীরিক অবস্থা খারাপ থাকায় তাকে পোর্ট থানা পুলিশ পাহারায় শার্শা উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে নিয়ে চিকিৎসা দেয়া হচ্ছে।

নাটোরে স্কুলছাত্রী ধর্ষণের অভিযোগে আটক -১

নাটোরে  স্কুলছাত্রী ধর্ষণের অভিযোগে আটক -১





রাজশাহী ব্যুরো
নাটোরের বড়াইগ্রামে স্কুলছাত্রী ধর্ষণের অভিযোগে একজনকে আটক করেছে পুলিশ। গতকাল রবিবার (২১ জুন) রাতে ওই স্কুলছাত্রীর মা বাদী হয়ে থানায় মামলা দায়ের করেন। অভিযুক্ত রফিক(৩৫) বনপাড়া পৌরসভার কালিকাপুর বেরপাড়া গ্রামের বাদশার ছেলে এবং সিদ্দিক(৩৭) একই এলাকার মান্নানের ছেলে।

বড়াইগ্রাম থানার চৌকস এসআই  সামসুল ইসলাম জানায়, ১৯ জুন (শুক্রবার) ধর্ষণের শিকার ওই স্কুলছাত্রী খদ্দকাছুটিয়া গ্রামে তার বাড়ির পাশে পোরাবাড়ী বিলে শাক তুলতে যায়। এমন সময়  রফিক ও তার সহযোগী সিদ্দিক ঐ স্কুলছাত্রীকে ভয়ভীতি দেখিয়ে পাশের ভুট্টা ক্ষেতে নিয়ে গিয়ে  জোর পূর্বক ধর্ষণ করার চেষ্টা করে। মেয়েটি চিৎকার করতে থাকলে তাকে ফেলে পালিয়ে যায়।

বড়াইগ্রাম থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) দিলিপ কুমার দাস  বলেন, এ ঘটনায় তাৎক্ষণিকভাবে  ধর্ষণ মামলার দুই নম্বর আসামী মোঃ সিদ্দিকুর রহমানকে আটক করা হয়েছে। অন্য জনকে আটকের চেষ্টা চলছে।

মাধবপুরে ১৬৫ পরিবারের মধ্যে বিজিবির ত্রাণ বিতরণ,

মাধবপুরে ১৬৫ পরিবারের মধ্যে বিজিবির ত্রাণ বিতরণ,




লিটন পাঠান হবিগঞ্জ জেলা প্রতিনিধি

হবিগঞ্জের মাধবপুর উপজেলার হরষপুর ধর্মঘর বড়জ্বাল বিওপি সীমান্ত এলাকার কর্মহীন ১৬৫ টি পরিবারের মধ্যে, খাদ্যসামগ্রী বিতরণ করেছে হবিগঞ্জ ৫৫ ব্যাটালিয়ন বর্ডার গার্ড বাংলাদেশ (বিজিবি) খাদ্যসামগ্রীর দাতা ছিল বিদ্যানন্দ নামে একটি বেসরকারি সংস্থা। সোমবার (২২-জুন) সকালে এসব খাদ্য সামগ্রী বিতরণ করা হয়।

বিজিবি হবিগঞ্জ ৫৫ ব্যাটালিয়নের অধিনায়ক লে. কর্নেল এস এন এম সামীউন্নবী চৌধুরী এসব ত্রাণ বিতরণ করেন। বিদ্যানন্দ ফাউন্ডেশনের পাঠানো খাদ্যসহায়তার মধ্যে রয়েছে চাল আটা ডাল ও লবণ, ত্রাণ সামগ্রী বিতরণের সময় আরও উপস্থিত ছিলেন ৫৫ ব্যাটালিয়নের সহকারী পরিচালক নাসির উদ্দিন চৌধুরী,

ধর্মঘর ইউ/পি চেয়ারম্যান সামছুল ইসলাম কামাল, ধর্মঘর কোম্পানী কমান্ডার সুবেদার আবু বক্কর ,স্থানীয় জনপ্রতিনিধি ও গণ্যমান্য ব্যক্তিবর্গ।
বিজিবি হবিগঞ্জ ৫৫ ব্যাটালিয়নের অধিনায়ক লে. কর্নেল এস এন এম সামীউন্নবী চৌধুরী বলেন করোনা ভাইরাসের ভয়াবহতা উল্লেখ করে।

বলেন,আমাদের সবাইকে করোনা ভাইরাস থেকে আত্নরক্ষার জন্য সঠিকভাবে স্বাস্থ্যবিধি মেনে চলতে হবে। তিনি করোনা পরবর্তী সম্ভাব্য মহামারী এড়ানোর জন্য ফসলের বীজ সংরক্ষণের 
বিষয়ে গুরুত্ব আরোপ করে বীজ সংরক্ষণের ব্যাপারে সবাইকে উদ্বুদ্ধ করেন।

আশাশুনি উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে পিপিই ও থার্মাল মিটার প্রদান

আশাশুনি উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে পিপিই ও থার্মাল মিটার প্রদান



আহসান উল্লাহ বাবলু, আশাশুনি ( সাতক্ষীরা) প্রতিনিধি   : আশাশুনি উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে পিপিই ও থার্মাল মিটার প্রাদান করা হয়েছে। সোমবার সকালে উপজেলা পরিষদ চেয়ারম্যানের কার্যালয়ে এ সামগ্রী হস্তান্তর করা হয়। আশাশুনি উপজেলা পরিষদের পক্ষ থেকে উপজেলা চেয়ারম্যান ও উপজেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি এবিএম মোস্তাকিম ও উপজেলা নিবার্হী কর্মকর্তা মীর  আলিফ রেজার নিকট থেকে ১০ সেট পিপিই ও ১টি থার্মাল মিটার গ্রহণ করেন উপজেলা স্বাস্থ্য ও পঃ পঃ কর্মকর্তা ডাঃ সুদেষ্ণ সরকার। এসময় উপজেলা চেয়ারম্যান এবিএম মোস্তাকিম বলেন করোনা ভাইরাসকে সামনে থেকে  যাহারা সরাসরি মোকাবেলা করছে সেই সমস্ত চিকিৎসক ও কর্তব্যরত দায়িত্বশীল ব্যক্তিরা যাহাতে নিরাপদে নির্বিঘ্নে করোনা ভাইরাসের নমুনা সংগ্রহ ও রোগীদের সেবা দিতে পারেন তার জন্য মাননীয় প্রধানমন্ত্রী জননেত্রী শেখ হাসিনা অত্যন্ত সজাগ ও আন্তরিক। আমরা সরকারের মাধ্যমে উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সের সমস্যাগুলো সমাধানের চেষ্টা করে যাচ্ছি। তিনি আরো বলেন বর্তমানে আশাশুনি উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সের স্বাস্থ্য ও পঃ পঃ কর্মকর্তা ডাঃসুদেষ্ণা সরকারের যোগদানের পর থেকে একদিকে যেমন সেবার মান বৃদ্ধি পেয়েছে তেমনি অন্যদিকে পারিপার্শ্বিক ও মনোরম পরিবেশ সকলকে মুগ্ধ করেছে। আমি বিশ্বাস করি ভবিষ্যতে এ ধারা অব্যাহত থাকবে। এ সময় উপস্থিত ছিলেন উপজেলা প্রকল্প বাস্তবায়ন কর্মকর্তা সোহাগ খান উপজেলা আওয়ামী লীগের সাংগঠনিক সম্পাদক আব্দুস সামাদ বাচ্চু উপজেলা শ্রমিক লীগের সভাপতি ঢালী সামছুল আলম প্রমুখ।

জাতীয় বিশ্ববিদ্যালয়ের ভিসি প্রফেসর ড. হারুন অর রশিদ এর পদত্যাগসহ ৪ দফা দাবীতে দিনাজপুরে সংবাদ সম্মেলন

জাতীয় বিশ্ববিদ্যালয়ের ভিসি প্রফেসর ড. হারুন অর রশিদ এর পদত্যাগসহ ৪ দফা দাবীতে দিনাজপুরে সংবাদ সম্মেলন




দিনাজপুর প্রতিনিধি : জাতীয় বিশ্ববিদ্যালয়ের ভিসি প্রফেসর ড. হারুন অর রশিদ এর পদত্যাগসহ ৪ দফা দাবীতে দিনাজপুরে সংবাদ সম্মেলন অনুষ্ঠিত হয়েছে।
আজ সোমবার সকাল ১১টায় দিনাজপুর প্রেসক্লাব মিলনায়তনে বাংলাদেশ বেসরকারী কলেজ অনার্স মার্স্টাস শিক্ষক ফোরাম দিনাজপুর জেলা শাখার আয়োজনে সংবাদ সম্মেলন অনুষ্ঠিত হয়। সংবাদ সম্মেলনে জাতীয় বিশ্ববিদ্যালয়ের ভিসি প্রফেসর ড. হারুন অর রশিদ এর পদত্যাগসহ ৪ দফা দাবী জানিয়ে লিখিত বক্তব্য পাঠ করেন সংগঠনের কেন্দ্রীয় সদস্য সচিব মো: মেহেরাব আলী। তিনি লিখিত বক্তব্যে বলেন, সরকারের জাতীয় শিক্ষানীতি-২০১০ এর উচ্চ শিক্ষা অধ্যায়-০৮,কৌশল-০৬ এ বলা হয়েছে পর্যায়ক্রমে ডিগ্রী পাশ কোর্স তুলে দিয়ে ০৪ বছর মেয়াদী ডিগ্রি অর্নাস (সন্মান) কোর্স চালু করা হবে। এটা যদি সরকারের পলিসি বা শিক্ষানীতি হয় তাহলে অনার্স কোর্সের শিক্ষকদেরকে কেন জনবল কাঠামো ও এমপিও নীতিমালার বাহিরে রাখা হবে, কেন এমপিও ভুক্ত করা হবে না ? একই নিয়ম ও পদ্ধতিতে নিয়োগপ্রপ্ত ডিগ্রী(পাস) ৩য় পদের শিক্ষকগণ এমপিওভুক্ত হতে পারেন।একই যোগ্যতায় একই প্রক্রিয়ায় নিয়োগপ্রাপ্ত হয়ে জাতীয়করণের আওতায় ৩২০ কলেজের অধিকাংশ ডিগ্রি কলেজের অর্নাস কোর্সের শিক্ষকগণ আত্বীয়করণের আওতায় প্রক্রিয়াধীণ। তাহলে আমাদের অপরাধ কি? কেন আমরা এমপিওভুক্ত হতে পারবো না। একই কলেজে কেহ এমপিওভুক্ত,কেহ ২৮ বছর নন এমপিও,একই বিষয়ে এই দ্বৈতনীতির অবসান চাই। উল্লেখ্য, ৪ দফা দাবীর মধ্যে রয়েছে অনার্স মাস্টার্স কোর্সে নিয়োগপ্রাপ্ত ননএমপিও শিক্ষকদেরকে জনবলকাঠামো ও এমপিও নীতিমালা ২০১৮ তে অর্ন্তভ’ক্ত করতে হবে, ৫ হাজার জন শিক্ষকের জন্য ১৪৬ কোটি ৫০ লাখ টাকা বরাদ্ধ দিয়ে অতিদ্রুত অনার্স মাস্টার্স শিক্ষকদেরকে অর্ন্তভুক্ত করতে হবে ও বর্তমান করোনা ভাইরাসের প্রার্দুভাবে অনার্স মাস্টার্স শিক্ষকদের মানবেতর জীবন হতে কাটিয়ে উঠতে বিশেষ প্রণোদনা ঋন ১২ শত কোটি টাকা বরাদ্ধ দিতে হবে এবং জাতীয় বিশ্ববিদ্যালয়ের ভিসি প্রফেসর ড. হারুন অর রশিদকে পদত্যাগ করতে হবে ।সংবাদ সম্মেলনে উপস্থিত ছিলেন,কেন্দ্রীয় কমিটির সদস্য মো: জাহেদুল ইসলাম জাহিদ,মো: হবিবুর রহমান,মহাদেব শর্মা, নজরুল ইসলাম প্রমুখ।

গলা ব্যথা মানেই করোনা নয়- ডা.মো.মনজুরুল হাসান

গলা ব্যথা মানেই করোনা নয়- ডা.মো.মনজুরুল হাসান




দিনাজপুর প্রতিনিধিঃ  গলা ব্যথা হলো গলার যেকোনো রোগের সবচেয়ে কমন উপসর্গ।ঠান্ডা এবং জীবাণুর সংক্রমণের মাধ্যমে গলায় ব্যথা হতে পারে। মৌসুম পরিবর্তনের সময় অনেকের ঠান্ডার সমস্যাসহ গলা ব্যথার প্রবণতা দেখা দেয়। এটি আমাদের শরীরে অস্বস্তি তৈরি করে। শুধুমাত্র মৌসুম পরিবর্তনই নয়, অফিসে দীর্ঘক্ষণ এসির মধ্যে থাকলেও ঠান্ডা লেগে গলা ব্যথা হতে পারে, টনসিলের সমস্যাও হেতে পারে। 
এদিকে বর্তমানে বাংলাদেশসহ সারা বিশ্বে ছড়িয়ে পড়া প্রাণঘাতী করোনাভাইরাস, যার আনুষ্ঠানিক নাম সার্স-সিওভি-২, নিশ্বাসের সাথে দেহে প্রবেশ করে। আশেপাশে কেউ হাঁচি বা কাশি দিলে বা ভাইরাস সংক্রমিত কোনও জায়গায় হাত দেয়ার পর আপনার মুখে হাত দিলে এই সংক্রমন হয়।
শুরুতে এটি আপনার গলা, শ্বাসনালীগুলো এবং ফুসফুসের কোষে আঘাত করে এবং সেসব জায়গায় করোনার কারখানা তৈরি করে। পরে শরীরের বিভিন্ন জায়গায় নতুন ভাইরাস ছড়িয়ে দেয় এবং আরো কোষকে আক্রান্ত করে।
এই ধারণায় আপনার গলা ব্যথা হওয়া মানেই করোনা নয়।
গলা ব্যথা কি : গলা ব্যথা কে মেডিকেল ভাষায় বলে ঝড়ৎব ঞযৎড়ধঃ. এটি ভাইরাস, ব্যাক্টেরিয়া, ফাঙ্গাস ইত্যাদি নানা কারণে হতে পারে। তবে ভাইরাস দ্বারা সংক্রমণের হার সবচেয়ে বেশি।গলা ব্যাথার সাথে অন্যান্য উপসর্গ যেমন গলায় খসখসে ভাব,ঢোক গিলতে কষ্ট,গলা ফুলে যাওয়া, স্বর পরিবর্তন, জ্বর ইত্যাদি থাকতে পারে।
যারা বেশি ঝুঁকি পূর্ণ:
১.শিশু ও কিশোর-কিশোরীরা।
২.  যারা ধূমপান করে অথবা ধূমপায়ী ব্যক্তির কাছাকাছি থাকে
৩. ধুলাবালু থেকে যাদের অ্যালার্জি হয়।
৪.উচ্চ স্বরে কথা বলেন যারা। 
৫.মসলা যুক্ত খাবার বেশি খেলে। 
৬.কোল্ড ড্রিঙ্কস বা ঠান্ডা পানি খেলে 
৭. ঘরে ব্যবহৃত জ্বালানি ও রাসায়নিক বস্তুুর সংস্পর্শে এলে। 
৮. যাদের দীর্ঘদিন ধরে সাইনাসের সমস্যা আছে। 
৯. যাদের রোগ প্রতিরোধক্ষমতা কম। 
১০.ময়লা ও স্যাত স্যাতে পরিবেশে থাকলে। 
১১.একই খাবার প্লেট, গ্লাস অনেক  জনে ব্যাবহার করলে। 
গলা ব্যথায় প্রাথমিক চিকিৎসা
১. লবণ পানি দিয়ে গড়গড়া করাটা সবচেয়ে সাধারণ এবং একই সঙ্গে কার্যকর পদ্ধতি। দিনে অন্তত ৪ বার লবণ পানি দিয়ে গড়গড়া করা। গলার সাধারণ ব্যথা বা গলা ভাঙার জন্য ভালো একটি ওষুধ হলো গরম বাষ্প। ফুটন্ত পানির বাষ্প যদি দৈনিক অন্তত ১০ মিনিট মুখ ও গলা দিয়ে টানা হয়, তবে গলার উপকার হয়।
২. ভাঙা গলায় হালকা গরম লেবু পানি, আদা বেশ কার্যকর। শুকনো আদায় ব্যাকটেরিয়া ধ্বংসকারী উপাদান রয়েছে, যা গলার বসে যাওয়া স্বরকে স্বাভাবিক করে তুলতে পারে।
৩.ারড়পব ৎবংঃ অর্থাৎ উচ্চ স্বরে কথা না বলা ও প্রয়োজন ছাড়া কথা বলা যাবে না।
তবে এমন সব চিকিৎসাও অনেক সময় কাজে দেয় না। দিনের পর দিন ধরে গলার ব্যথা ও স্বর বসে থাকে। গলা দিয়ে কথা বের হতে চায় না। স্বর বদলে যায়। ফ্যাসফ্যাসে আওয়াজ হয়। সে ক্ষেত্রে বিশেষজ্ঞ চিকিৎসকের পরামর্শ নেওয়া উচিত।
পরামর্শ
* উষ্ণ,স্যাঁতসেঁতে নয় এ রকম ঘরে থাকতে হবে।
*ফ্রিজের ঠান্ডা খাবার বা পানীয় পান করা যাবে না।
* আক্রান্তকালীন কথা কম বলতে হবে। এ সময় প্রচুর তরল খাবার যেমন পানি, ফলের রস, গরম চা গ্রহণ করতে হবে।
* সুস্থ না হওয়া পর্যন্ত বাড়িতে বিশ্রাম নিতে হবে। হাঁচি ও কাশির সময় মুখ ঢেকে রাখতে হবে। এর ফলে অন্যরা সংক্রমিত হবে না।
*খাবার প্লেট , গ্লাস অন্যের সাথে শেয়ার করা যাবে না।
* ধোঁয়া এবং বায়ু দূষিত করে এমন কিছু থেকে দূরে থাকতে হবে।
* বাড়ির বাতাস শুষ্ক হলে তা আর্দ্র রাখার ব্যবস্থা করতে হবে।
* ধূমপান এবং ধূমপানের ধোঁয়াযুক্ত পরিবেশ থেকে দূরে থাকতে হবে।
করোনা কালে বাড়তি সতর্কতা: করোনা ভাইরাস দ্বারা সংক্রমণ হলে যে সব উপসর্গ দেখা দেয় তার মধ্যে একটি হচ্ছে গলা ব্যথা।তাই এ সময় গলা ব্যথা হলে আতঙ্কিত না হয়ে ঘরে বসেই প্রাথমিক চিকিৎসা করতে হবে। পাশাপাশি স্বাস্থ্য সচেতনতা বৃদ্ধি করতে হবে। বাসায় মাস্ক ব্যবহার করতে হবে। হাঁচি কাশি দিলে টিস্যু ব্যবহার করতে হবে। নিজের ব্যাক্তিগত ব্যবহার্য জিনিসপত্র আলাদা রাখতে হবে এবং আলাদা থাকতে হবে।
বলা হয়ে থাকে চৎবাবহঃরড়হ রং নবঃঃবৎ ঃযধহ পঁৎব অর্থাৎ প্রতিকারের চেয়ে প্রতিরোধ উত্তম। তাই আমাদের সবার উচিত যথাযত স্বাস্থ্য বিধি মেনে চলা। আপনি সুস্থ থাকলে আপনার পরিবার নিরাপদে থাকবে। নিজেকে ভালোবাসুন এবং দেশের একজন দায়িত্বশীল নাগরিক হিসেবে নিজেকে প্রতিষ্ঠিত করুন। লেখক-ডা.মো.মনজুরুল হাসান, নাক কান ও গলা বিষয়ে উচ্চতর প্রশিক্ষণরত, সহকারী সার্জন, এম. আব্দুর রহিম মেডিকেল কলেজ হাসপাতাল, দিনাজপুর।

যশোরে সন্ত্রাসের ছুরিঘাতে যুবক খুন!

যশোরে সন্ত্রাসের ছুরিঘাতে যুবক খুন!




সুমন হোসেন, যশোর প্রতিনিধিঃ 

যশোরে উপশহর  শিশু হাসপাতালের সামনে  রোববার রাতে সন্ত্রাসীদের ছুরিঘাতে এহসানুল হক ইমু(৩৫) নামে যুবক খুন হয়েছে। ইমু উপশহর বি-ব্লক এলাকার ইকবাল হোসেন ইকুর ছেলে। নিহত ইমুর পিতা ইকু জানায়, তিনি লোক মুখে শুনেছেন, আজ রোববার রাত ৮ টার দিকে উপশহর শিশু হাসপাতালের সামনে রাত ৮ টার দিকে উপশহর শিশু হাসপাতালের সামনে দুইজন সন্ত্রাসী  একে অপরের সাথে গোলযোগ ঝগড়া  করছিলো এসময় ইমু এগিয়ে এসে ঠেকিয়ে দিতে এগিয়ে যায়। এই সময় ইমু একজনকে থাপ্পড়  দেয়। সে সময় একজন ইমুর পেটে ও দুই রানে ছুরি আঘাত করে পালিয়ে যায়। পরে স্থানীয়রা ইমুকে রক্তাক্ত  অবস্থায় যশোর জেনারেল হাসপাতালে ভর্তি করান। চিকিৎসাধীন অবস্থায় ইমু রাত নয়টার দিকে  সার্জারি বিভাগের ইন্টার্ন চিকিৎসক  জান্নাতুল নেছা ইমুকে মৃত ঘোষনা করে বলেন,  অতিরিক্ত  রক্ত ক্ষরনের জন্য ইমুর মৃত্যু  হয়েছে।  কোতোয়ালি থানার উপপরিদর্শক (এস আই) মকলেছুজ্জামান বলেন, আসামীর নাম ঠিকানা সংগ্রহ  ও তাদের আটকাতে অভিযানে আছেন পুলিশ।

আশাশুনিতে ঘূর্ণিঝড় আম্ফান মোকাবেলায় উত্তরণের পক্ষে স্বাস্থ্য ও চিকিৎসা সেবায় ফ্রি মেডিকেল ক্যাম্প

আশাশুনিতে ঘূর্ণিঝড় আম্ফান মোকাবেলায় উত্তরণের পক্ষে স্বাস্থ্য ও চিকিৎসা সেবায় ফ্রি মেডিকেল ক্যাম্প




আহসান উল্লাহ বাবলু,আশাশুনি ( সাতক্ষীরা)   প্রতিনিধিঃ

আশাশুনিতে ঘূর্ণিঝড় মোকাবেলায় উত্তরণের পক্ষে স্বাস্থ্য চিকিৎসা সেবায় ফ্রি মেডিকেল ক্যাম্প অনুষ্ঠিত হয়েছে। সোমবার সকালে আশাশুনি সদর ইউনিয়নের ধান্যহাটি সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ে উপজেলা স্বাস্থ্য ও পঃ পঃ কর্মকর্তা ডাঃ সুদেষ্ণা সরকার এ মেডিকেল ক্যাম্পের উদ্বোধন করেন। আশাশুনি উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্স ও উত্তরণের পরিচালনায় এবং স্টার্ট ফান্ড ও ইউকেএইড এর সহযোগিতায় প্রসূতি,দুগ্ধদানকারী মা ও কিশোরীদের স্বাস্থ্য সেবা ও ঔষধ বিতরণ করা হয়। মেডিকেল ক্যাম্পে ২০ জন প্রসূতি ৩২ জন দুগ্ধদানকারী মা ও ১৩  জন কিশোরী সহ সর্বমোট ৬৫ জনকে চিকিৎসা সেবা প্রদান করা হয়। মেডিকেল ক্যাম্পে চিকিৎসা সেবা প্রদান করেন উপজেলা স্বাস্থ্য ও পঃপঃ কর্মকর্তা ডাঃ সুদেষ্ণা সরকার ও আবাসিক চিকিৎসক ডাঃ দীপন কুমার বিশ্বাস। এসময় উত্তরের উপজেলা কো-অর্ডিনেটর তীর্থ কুমার স্বেচ্ছাসেবক আল আমিন সুমন নাগ মনিরুল ইসলাম প্রমুখ উপস্থিত ছিলেন।

নাটোর পৌরসভার মেয়র হতদরিদ্র সুমনাকে সেলাই মেশিন দিলেন

নাটোর পৌরসভার মেয়র হতদরিদ্র সুমনাকে সেলাই মেশিন দিলেন


  

রাজশাহী ব্যুরো 
হতদরিদ্র সুমনা বেগমকে সেলাই মেশিন দিলেন নাটোর পৌরসভার মেয়র উমা চৌধুরী জলি।

গতকাল রবিবার (২১ জুন ) সকালে নিজ কার্যালয়ে সুমন আর হাতে এই সেলাইমেশিন তুলে দেন তিনি। হতদরিদ্র রিক্সাচালক আফসার আলী শেখ কষ্ট করে রিক্সা চালিয়ে সামান্য রোজগারে সংসার চলে তাদের। তার একার পক্ষে সংসার চালানো খুব কঠিন হয়ে পড়ে। তার কষ্ট কিছুটা লাঘবের জন্য তার স্ত্রী সুমনা বেগম কে একটি সেলাই মেশিন দেন তিনি।
 
এসময় উপস্থিত ছিলেন জেলা আওয়ামী লীগের দপ্তর সম্পাদক দিলীপ কুমার দাস। এসময় মেয়র জানান আফসার আলী এবং সুমনার খেটে খাওয়া মানুষের জন্য তাদের আমি ধন্যবাদ জানাই কারো কাছ থেকে চেয়ে বা সাহায্য  করে  খাওয়ার চেয়ে নিজে পরিশ্রম করে উপার্জন করে সংসার চালানো অনেক বেশি সম্মানের।

নওগাঁর আত্রাইয়ে এখন চাষ হচ্ছে সৌদির মরুভূমির ‘সাম্মাম’ ফল

নওগাঁর আত্রাইয়ে এখন চাষ হচ্ছে সৌদির মরুভূমির ‘সাম্মাম’ ফল




 
মোঃ ফিরোজ হোসাইন 
রাজশাহী ব্যুরো

‘সাম্মাম’ সৌদি জাতের নতুন ফল। আর এই ফল প্রথমবারের মতো উৎপাদন করে ব্যাপক সাফল্য পেয়েছেন নওগাঁর আত্রাই উপজেলার মিরাপুর গ্রামের সফল কৃষক রেজাউল ইসলাম। সৌদি আরবসহ মধ্যপ্রাচ্যে উৎপাদিত ফলটি চাষাবাদ এখন হচ্ছে নওগাঁর আত্রাই উপজেলার মিরাপুর এলাকায়। সৌদি থেকে বীজ সংগ্রহ করে দেড় বিঘা পতিত জমিতে দুই জাতের সাম্মাম চাষ করে প্রায় এক টন ফল উৎপাদন করেছেন তিনি।

এক জাতের সাম্মামের বাহিরের অংশ সবুজ আর ভিতরে লাল এবং আরেক জাতের সাম্মামের বাহিরের অংশ হলুদ আর ভিতরের অংশ লাল। তবে দুটি ফলই খেতে মিষ্টি, সু-স্বাদু ও সুগন্ধযুক্ত।

রেজাউল ইসলামের রহস্য ঘেরা এই নতুন জাতের রসালো ফল উৎপাদনের খবরে প্রতিদিন তার তে দেখতে আসছেন আশপাশের কৃষকরা। কেউ কেউ আগামীতে নতুন জাতের এই রসালো ফল উৎপাদনের জন্য পরামর্শও নিচ্ছেন রেজাউল ইসলামের কাছ থেকে।

সৌদি আরব থেকে বীজ সংগ্রহ করে আত্রাই উপজেলার শাহাগোলা ইউনিয়নের মিরাপুর এলাকায় পতিত দেড় বিঘা জমিতে তরমুজ জাতীয় দুই ধরনের সাম্মাম বীজ বপন করেন রেজাউল ইসলাম। দেড় মাসের মধ্যেই ফল আসতে শুরু করে। তিন মাসের মধ্যেই পরিপক্ক হয় সাম্মাম ফল। এ ফলটি এলাকায় নতুন, খেতে খুবই মিষ্টি এবং রসালো হওয়ায় অনেকেই কিনছেন শখের বসতবর্তী হয়ে।

এ ব্যাপারে সফল ও সৌাখন কৃষক রেজাউল ইসলাম বলেন, ‘সাম্মাম’ ফলের তেমন একটা রোগবালাই নেই, গাছে খুব সামান্য সার ও কিটনাশক দিতে হয়। পতিত দেড় বিঘা জমিতে প্রথমবারের মতো সাম্মাম চাষ করে ব্যাপক ফলন পেয়েছেন। প্রায় এক টন ফল উৎপাদন হয়েছে। একেকটি সাম্মাম ফল ২ থেকে আড়াই কেজি ওজন হয়। প্রতি কেজি সাম্মাম পাইকারী দেড়শ’ এবং খুচরা ২ থেকে আড়াইশ’ টাকায় বিক্রি করছেন তিনি।

এ ব্যাপারে রেজাউল ইসলামের ছেলে সোহানুর রহমানের সাথে কথা বললে তিনি বলেন, পড়াশোনার ফাঁকে বাবার কৃষি কাজে সহায়তা করছেন তিনি। তরমুজ জাতের সাম্মাম ফল উৎপাদনে তেমন কোন বেগ পেতে হয়নি। বীজ রোপন থেকে পরিচর্যা উপর গুরুত্ব দিতে হয়েছে। এছাড়া সময় মতো জৈব সার দেয়া হয়। এভাবে তিন মাস যেতে না যেতেই সাম্মাম পরিপক্ক ফলে রূপ নেয়। এই ফলের বেশ চাহিদা রয়েছে। নতুন জাতের এই ফল চাষ করলে সবাই লাভবান হবে বলে তিনি মনে করেন।

এ ব্যাপারে উপজেলা কৃষি কর্মকর্তা কৃষিবিদ কেএম কাউছার হোসেন বলেন, রেজাউল ইসলাম একজন আদর্শ কৃষক। সে সব সময় নতুন নতুন কৃষিতে আগ্রহী।

ফোনের ব্যাটারি ঠিক রাখার উপায়

ফোনের ব্যাটারি ঠিক রাখার উপায়





স্টাফ রিপোর্টারঃ  
তথ্যপ্রযুক্তির অগ্রযাত্রার এ সময়ে স্মার্টফোন হয়ে উঠেছে জীবনের অন্যতম অনুষঙ্গ। শুধু ব্রাউজিং বা কথা বলা নয় বরং স্মার্টফোনেই ক্লাস করা, কনফারেন্সে যোগ দেয়া, নিজের ব্যবসার খোঁজ রাখাসহ সবই হয়। তাই এর ব্যবহার যত বাড়ছে দুর্ঘটনার হারও বেড়ে চলেছে। বেশিরভাগ ক্ষেত্রেই দেখা যায় স্মার্টফোনের দুর্ঘটনাগুলো ব্যাটারিকেন্দ্রিক। ব্যাটারি ব্লাস্ট করা, অতিরিক্ত গরম হয়ে যাওয়া, ফুলে যাওয়া এসব থেকে কিভাবে স্মার্টফোনের ব্যাটারি ঠিক রাখবেন তারই বিস্তারিত আজকের টিপসে।

স্মার্টফোনের ব্যাটারি ঠিক রাখতে এ বিষয়গুলো-

সস্তা চার্জার নয়: বাজারের সস্তা চার্জার থেকে সাবধান। এটি ফোন ব্লাস্টের অন্যতম কারণ। যেই ব্র্যান্ডের ফোম ব্যবহার করবেন ঠিক সেই ব্র্যান্ডের নির্দিষ্ট চার্জার ব্যবহার করতে হবে। অন্যথায় চার্জ অবস্থায় ব্লাস্ট হয়ে যেতে পারে আপনার ফোনটি।

চার্জের নিয়ম: আমরা অনেকেই সারারাত ফোন চার্জে বসিয়ে দিই। এটির ফলে ফোন ওভার হিটিং করে ও ব্যাটারিও ক্ষতিগ্রস্ত হয়। ফোনকে অনেক বেশি চার্জও করা যাবে না আবার একদম খালিও করে ফেলা যাবে না। নিয়ম মেনে ফোন চার্জ করুন।

অতিরিক্ত গেম খেলা: স্মার্টফোন গরম হওয়ার অন্যতম কারণ অতিরিক্ত গেম খেলা। এতে প্রসেসরের ওপর অনেক চাপ পড়ে। এর ফলে ফোন গরম হয়ে ব্যাটারি ফেটে যেতে পারে। তাই নির্দিষ্ট সময় গেম খেলার পর কিছুটা সময় স্মার্টফোনকে বিরত রাখুন প্রসেসিং থেকে।

ব্যাটারির তৈরিতে ত্রুটি: ব্যাটারি তৈরিতে ত্রুটি থাকলেও সামান্য ব্যবহারে ফোন গরম হয়ে যায় এবং ঘটে যেতে পারে দুর্ঘটনা। যদিও এতে ব্যবহারকারীদের কোনো হাত নেই। তবুও ফোন কেনার সময় ব্যাটারির তথ্যগুলো সঠিকভাবে জেনে নিতে হবে।

হাত থেকে পড়ে গেলে: হাত থেকে ফোন বারবার পড়ে গেলে ব্যাটারি ফিজিক্যালি কিছুটা ড্যামেজ হয়। এর ফলে শর্টসার্কিট, ওভার হিটিং ইত্যাদি হতে পারে। হাত থেকে ফোন পড়ে যাওয়ার পর ব্যাটারির অসঙ্গতি দেখা দিলে বদলে ফেলুন স্মার্টফোনের ব্যাটারি।

উত্তাপ থেকে রক্ষা: রোদ বা উত্তাপ হতে যতটা সম্ভব ফোনকে দূরে রাখতে হবে। অতিরিক্ত সূর্যের আলোয় ফোন গরম হয় এটা গবেষণায় প্রমাণিত।

যশোর -২ আসনের এমপি নাসির এর বিরুদ্ধে সংবাদ প্রকাশ,এলাকায় ক্ষোভের সৃষ্টি, বিভ্রান্ত না হওয়ার অনুরোধ

যশোর -২ আসনের এমপি নাসির এর  বিরুদ্ধে সংবাদ প্রকাশ,এলাকায়  ক্ষোভের সৃষ্টি, বিভ্রান্ত না হওয়ার  অনুরোধ




স্টাফ রিপোর্টারঃ
যশোর ২ (ঝিকরগাছা-চৌগাছা) আসনের জাতীয় সাংসদ বীর মুক্তিযোদ্ধা মেজর জেনারেল (অবঃ) ডাঃ মোঃ নাসির উদ্দিনের নাম জড়িয়ে  যশোর থেকে প্রকাশিত দৈনিক স্পনন্দন পত্রিকায় প্রকাশিত সংবাদের তীব্র প্রতিবাদ জানিয়েছে চৌগাছা - ঝিকরগাছা  উপজেলার  সর্বস্তরের জনগণ । পত্রিকাটি গতকাল ২১ শে জুন যশোর এমপি নাসির উদ্দীনের  এপিএস আটক শিরোনামে সংবাদ প্রকাশ করায় এলাকায় তীব্র ক্ষোভের সৃষ্টি হয়েছে। সেখানে এপিএস হিসেবে রাজীব হাসান রাজু’র নাম উল্লেখ করা হয়েছে।  
এ-ই ব্যাপারে দেশের করোনার মহামারিতে নিজের জীবনের মায়া ত্যাগ করে জনসাধারণের সাথে থাকা যশোর - ২( চৌগাছা - ঝিকরগাছা) আসনের জাতীয় সাংসদ বীর মুক্তিযোদ্ধা মেজর জেনারেল( অবঃ) অধ্যাপক ডাক্তার মোঃ নাসির উদ্দীন বলেন -জাতীয়  সংসদ কর্তৃক নিয়োজিত আমার একমাত্র অফিসিয়াল  ব্যক্তিগত সহকারী (পি এ) মোঃ এহসানুল হক।
এহসানুল হক ছাড়া আমার আর কোন ব্যক্তিগত সহকারী পি এ,পি এস, এ পি এস নাই। সকলকে উদ্দেশ্য প্রণোদিত, ভিত্তিহীন সংবাদে কান না দিয়ে  বিভ্রান্ত না হওয়ার জন্য অনুরোধ জানিয়েছেন।

শৈলকুপা উপজেলা ৩ জন করোনায় আক্রান্ত

 শৈলকুপা উপজেলা ৩ জন করোনায় আক্রান্ত



সম্রাট হোসেন, শৈলকুপা উপজেলা প্রতিনিধি, 

২২/০৬/২০২০ রোজ সোমবার  ঝিনাইদহ জেলার শৈলকুপা উপজেলায় নতুন করে আরাও ৩ জন করোনায় আক্রান্ত হয়েছে বলে উপজেলা স্বাস্থ্য কর্মকর্তা প্রকিবেদককে নিশ্চিত করেছেন। কিন্তু বিশেষ কারণে এখনও তাদের নাম বা পরিচয় উপজেলা স্বাস্থ্য কর্মকর্তা প্রকাশ করেননি। 

ঝিনাইদহে জোর পুর্বক কিস্তি আদায় ম্যানেজার কে ১০ হাজার টাকা জরিমানা

ঝিনাইদহে জোর পুর্বক কিস্তি আদায় ম্যানেজার কে ১০ হাজার  টাকা জরিমানা






খোন্দকার আব্দুল্লাহ বাশার, ঝিনাইদহ জেলা প্রতিনিধি। 



ঝিনাইদহে জোরপূর্বক ঋণের কিস্তি আদায় করার অভিযোগে সিএসএস (খ্রীস্টান সার্ভিস সোসাইটি) নামের একটি এনজিও’র ম্যানেজার মৃনাল বিশ্বাসকে ১০ হাজার টাকা জরিমানা করেছেন ভ্রাম্যমাণ আদালত। রোববার বিকেল ৩ টার দিকে জেলা শহরের পাগলাকানাই মোড় এলাকায় এ ঘটনা ঘটে। ঝিনাইদহ জেলা প্রশাসকের কার্যালয়ের নির্বাহী ম্যাজিষ্ট্রেট মো: কামরুজ্জামান ও এসএম রকিবুল হাসান যৌথভাবে এ অভিযান পরিচালনা করেন।

মাগুরা জেলাৱ দুটি এলাকাকে রেডজোন ঘোষণা,

মাগুরা জেলাৱ দুটি এলাকাকে রেডজোন ঘোষণা,




মোঃকুতুবুল আলম 
মহম্মদপুর উপজেলা সংবাদদাতা (মাগুরা)

প্রথম বারের মত রবিবার মাগুরায় দুটি এলাকাকে রেডজোন ঘোষণা করা হলো। মাগুরা পৌরসভার ৪ নং ওয়ার্ডের খানপাড়া ও পিটিআই পাড়াকে রেডজোনের আওতায় এনে তা লকডাউন করা হয়েছে ।মাগুরা সদর উপজেলার নির্বাহী কর্মকর্তা আবু সুফিয়ার বলেন, স্বাস্থ্য বিভাগের নির্দেশনা অনুযায়ী ও জেলা করোনা প্রতিরোধ কমিটির সিদ্ধান্ত মোতাবেক মাগুরা শহরের চার নং ওয়ার্ডের খানপাড়া ও পিটিআই পাড়াকে লকডাউন ঘোষণা করা হলো।উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তার নেতৃত্বে এলাকা দুটিতে বিকালে লাল নিশান উড়িয়ে এবং প্রয়োজনীয় নির্দেশনা দিয়ে লকডাউন ঘোষণা করা হয়।জেলায় এ পর্যন্ত মোট আক্রান্ত ৬৪ জনের মধ্যে সুস্থ হয়েছেন ৩৪ জন । বর্তমানে হোম আইসোলেশনে আছেন-২৭ জন ও প্রাতিষ্ঠানিক আইসোলেশনে আছেন-১জন । এ পর্যন্ত জেলায় করোনায় আক্রান্ত হয়ে মারা গেছেন ২জন ।

মোঃকুতুবুল আলম 
মহম্মদপুর উপজেলা সংবাদদাতা (মাগুরা)

প্রথম বারের মত রবিবার মাগুরায় দুটি এলাকাকে রেডজোন ঘোষণা করা হলো। মাগুরা পৌরসভার ৪ নং ওয়ার্ডের খানপাড়া ও পিটিআই পাড়াকে রেডজোনের আওতায় এনে তা লকডাউন করা হয়েছে ।মাগুরা সদর উপজেলার নির্বাহী কর্মকর্তা আবু সুফিয়ার বলেন, স্বাস্থ্য বিভাগের নির্দেশনা অনুযায়ী ও জেলা করোনা প্রতিরোধ কমিটির সিদ্ধান্ত মোতাবেক মাগুরা শহরের চার নং ওয়ার্ডের খানপাড়া ও পিটিআই পাড়াকে লকডাউন ঘোষণা করা হলো।উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তার নেতৃত্বে এলাকা দুটিতে বিকালে লাল নিশান উড়িয়ে এবং প্রয়োজনীয় নির্দেশনা দিয়ে লকডাউন ঘোষণা করা হয়।জেলায় এ পর্যন্ত মোট আক্রান্ত ৬৪ জনের মধ্যে সুস্থ হয়েছেন ৩৪ জন । বর্তমানে হোম আইসোলেশনে আছেন-২৭ জন ও প্রাতিষ্ঠানিক আইসোলেশনে আছেন-১জন । এ পর্যন্ত জেলায় করোনায় আক্রান্ত হয়ে মারা গেছেন ২জন ।

করোনা আক্রান্ত হয়ে ভোলার জেলা ও দায়রা জজ ডা.এবি,এম মাহমুদুল হককে হেলিকপ্টারে আনা হল ঢাকায়

করোনা আক্রান্ত হয়ে ভোলার জেলা ও দায়রা জজ ডা.এবি,এম মাহমুদুল হককে হেলিকপ্টারে আনা হল ঢাকায়




মোঃ আওলাদ হোসেন
জেলা প্রতিনিধি ভোলা (দৌলতখান)

করোনায় আক্রান্ত ভোলা জেলা ও দায়রা জজ এবিএম মাহমুদুল হকের শারীরিক অবস্থার অবনতি হওয়ায় বিমান বাহিনীর হেলিকপ্টারে করে ঢাকায় আনা হয়েছে।

রোববার রাত ৮টা ৩৯ মিনিটে তেজগাঁওয়ে বিমান বাহিনী ঘাঁটি বাশার-এ হেলিকপ্টারটি অবতরণ করেছে বলে জানিয়েছে আন্তঃবাহিনী জনসংযোগ পরিদফতর (আইএসপিআর)।

সেখান থেকে রাত ৮টা ৫০ মিনিটে এবিএম মাহমুদুল হককে রাজধানীর ইউনিভার্সেল মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে (সাবেক আয়েশা মেমোরিয়াল হাসপাতাল) নেয়া হয়েছে বলে জানায় আইএসপিআর।


 
এর আগে আইন মন্ত্রণালয়ের জনসংযোগ কর্মকর্তা ড. মো. রেজাউল করিম বলেন, এবিএম মাহমুদুল হকের শারীরিক অবস্থার অবনতির বিষয়টি আইনমন্ত্রী আনিসুল হককে জানানো হলে তিনি প্রধানমন্ত্রীর মুখ্য সচিব, সশস্ত্র বাহিনী বিভাগের প্রিন্সিপাল স্টাফ অফিসার ও স্বাস্থ্য অধিদফতরের মহাপরিচালকের সঙ্গে কথা বলে তাকে দ্রুত ঢাকায় আনার ব্যবস্থা করেন। রাজধানীর ইউনিভার্সেল মেডিকেলে তার চিকিৎসা করা হবে। তিনি গত ১২ জুন থেকে করোনার উপসর্গে ভুগছিলেন এবং ভোলার নিজ বাসা থেকেই চিকিৎসা নিচ্ছিলেন।

মাননীয় প্রধানমন্ত্রীর প্রতিষ্ঠিত দারুল আরকাম মাদ্রাসা ছয় মাসেও প্রকল্প অনুমোধন হয়নি

মাননীয় প্রধানমন্ত্রীর প্রতিষ্ঠিত দারুল আরকাম মাদ্রাসা ছয় মাসেও প্রকল্প অনুমোধন হয়নি




মোঃ আব্দুর রাজ্জাক 
হরিরামপুর (মানিকগঞ্জ) প্রতিনিধি:
মাননীয় প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার অভিপ্রায় ও আন্তরিক প্রচেষ্টায় প্রতিষ্ঠিত হয় দারুল আরকাম মাদ্রাসা। বাংলাদেশের হতদরিদ্র পরিবার শিশুদের মাঝে ইসলামি শিক্ষা প্রচার ও প্রসারের লক্ষ্য প্রতিষ্ঠিত হয় এই মাদ্রাসা। 
উক্ত মাদ্রাসায় নিয়োগ দেওয়া হয় কোরআনের হাফেজ ও সর্বোচ্চ উচ্চ শিক্ষিত ফাযিল ও অনার্স  মাস্টার্স মেধাবী আলেম ওলামাদের।কিন্তু খুবই দুঃখের বিষয় হলো, সর্বোচ্চ শিক্ষিত আলেম ওলামাদের  ছয় মাস যাবত বেতন ভাতা বন্ধ রয়েছে। এ সময় দেশের  এই ক্রান্তিলগ্নে নির্দিধায় সরকারি নির্দেশনা মানুষের কাছে প্রচার করে যাচ্ছে যেমন-করোনা প্রতিরোধে সচেতনামৃলক লিফলেট,বিভিন্ন মসজিদের ইমামগনদের আর্থিক সহায়তা,শিক্ষার্থীদের খোঁজখবর ইত্যাদি সমৃহ।অথচ বেতন ভাতা ৬ মাস যাবত বন্ধ রয়েছে । প্রধানমন্ত্রীর প্রতিষ্ঠিত  মাদ্রাসা বন্ধ রয়েছে সেই মাদ্রাসা প্রকল্প অনুমোদন পেতে বিলম্ব হওয়ার কথা না, এটা কল্পনা করা যায় না এমনটা জানালেন বেতন না পাওয়া শিক্ষকবৃন্দ ও অভিবাবক বৃন্দ।এছাড়া  উত্তর চানপুর দারুল আরকাম মাদ্রাসার শিক্ষক (কওমি) নিসাব হাফেজ মাওলানা আলমগীর হোসাইন ও সিনিয়র শিক্ষক আব্দুর রাজ্জাক,ছাত্র অভিভাবক শামসুল ও সভাপতি দৈনিক কপোতাক্ষ নিউজকে জানান,দারুল আরকাম মাদ্রাসা খুব সুন্দর ভাবেই শুনামের সাথে চলতে ছিলো এই মুহূর্তে করোনা ভাইরাস মহামারী কারণে শিক্ষক ও শিক্ষিকাদের ৬ মাস যাবত বেতন ভাতা না পেয়ে খুব কষ্টে দিন অতিবাহিত করছে, মাননীয় প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা  বিশ্বের অন্যতম বিচক্ষণ প্রধানমন্ত্রী। জননেত্রী শেখ হাসিনার দিকেই তাকিয়ে আছেন হাজার হাজার ছাত্র/ছাত্রী ও শিক্ষক শিক্ষিকা অভিভাবক  জমিদাতা গ্রামবাসী। সকলেই একটাই দাবি  প্রকল্প অনুমোদন দিয়ে শিক্ষকদের বেতন পরিশোধ করা এটাই প্রত্যাশায়।

খুলে দেওয়া হচ্ছে সিঙ্গাপুরের মসজিদ

খুলে দেওয়া হচ্ছে সিঙ্গাপুরের মসজিদ



মোঃ নাঈম শেখ, সিঙ্গাপুর প্রতিনিধিঃ 
   
ইসলামিক রিলিজিয়াস কাউন্সিল অফ সিঙ্গাপুর (MUIS) ২১ শে জুন ঘোষণা করেছে যে, মসজিদগুলি ধীরে ধীরে ২৬ শে জুন থেকে প্রতিদিনের জামাত এবং শুক্রবারের নামাজের জন্য পুনরায় শুরু করবে।

এটি ১৮ জুন সংস্কৃতি, সম্প্রদায় ও যুব মন্ত্রনালয় (MCCY) দ্বারা জারি করা একটি পরামর্শকের সাথে সম্মতিতে।

যাইহোক, প্রার্থনার স্থানগুলি কঠোর নিরাপদ পরিচালনার ব্যবস্থা থাকবে।
জাতীয় নির্দেশিকাগুলির সাথে সামঞ্জস্য রেখে মসজিদগুলিকে একটি অনলাইন নামাজের স্থান বুকিং সিস্টেম চালু করা হবে। যার মাধ্যমে যারা সালাত আদায় করবে তাদের নামাজের স্লট বুক করা প্রয়োজন হবে৷ 

অনলাইন বুকিং সিস্টেম সকাল ৯ টায় বুধবার, ২৪ জুন থেকে শুরু করা হবে।
মসজিদগুলিতে প্রবেশ কেবলমাত্র NRIC / FIN ব্যবহার করে সেফএন্ট্রির মাধ্যমে পাওয়া যাবে এবং ট্রেসটুগেদার অ্যাপ্লিকেশনটির ব্যবহারের জোর উৎসাহ দেওয়া হয়েছে।

সিস্টেমটি দৈনিক এবং শুক্রবারের জামাতের নামাজের জন্য নামাজের স্থান সংরক্ষণের অনুমতি দেয়।
শুক্রবারের নামাজের জন্য, নিরাপদ জনতা ব্যবস্থাপনার জন্য দুটি সেশনের মধ্যে আধা ঘন্টার ব্যবধানে দুটি ৩০ মিনিটের প্রার্থনা সেশন থাকবে।

খুতবা এবং নামাজ সর্বাধিক ২০ মিনিটের জন্য সংক্ষিপ্ত করা হবে।

আরও নামাজীদের তাদের জুমার নামাজ আদায় করতে সক্ষম করতে, অনলাইন প্রার্থনা বুকিং সিস্টেম প্রতি তিন সপ্তাহে একজন ব্যক্তি জুমার নামাজের জন্য বুকিংয়ের সংখ্যা সীমাবদ্ধ করে দেবে।
যে সকল ব্যক্তি জুমার নামাজের জন্য স্লট পেতে সক্ষম নন, তাদের জন্য ফাতওয়া কমিটি পরামর্শ দিয়েছে যে জুমার নামাজের স্থলে নিয়মিত দুপুর (জুহুর) নামাজ আদায় করা যথেষ্ট ও জায়েজ।

এই ছাড়টি তাদের ক্ষেত্রেও প্রযোজ্য যারা সংক্রামিত এবং সংক্রমণের ঝুঁকিতে রয়েছেন, যেমন ৬০ বছর বা তার বেশি বয়সের প্রবীণরা, যাদের পূর্ব-বিদ্যমান দীর্ঘস্থায়ী অবস্থা রয়েছে, এবং ১২ বছরের কম বয়সী বাচ্চাদের ক্ষেত্রে।
যারা এখনও মসজিদগুলি দেখতে চান তবে স্লট পেতে অক্ষম, তারা ব্যক্তিগত উপাসনার জন্য প্রার্থনা সেশনের বাইরে মসজিদগুলি দেখতে পারেন।
প্রতিদিনের জামাতে নামাজের জন্য, মসজিদগুলি আজান (প্রার্থনা ডাক) এর পরপরই দৈনিক ৫ ওয়াক্ত জামাতের নামাজে প্রত্যেকবার ৫০ জন নামাজ আদায় করতে পারবেন৷ 

অনলাইনে বৈধ বুকিং যারা করবে প্রতিদিনের জামাতের নামাজের জন্য শুধুমাত্র তাদেরই মসজিদে প্রবেশের অনুমতি দেওয়া হবে।
স্লটগুলি বুকিং সিস্টেমের মাধ্যমে প্রথম আসুন-প্রথম পরিবেশন ভিত্তিতে দেওয়া হবে।

চারটি মসজিদ বন্ধ থাকবে ;

আপাতত নিম্নলিখিত মসজিদগুলি বন্ধ থাকবে:
মসজিদ আবদুল গাফুর (Masjid Abdul Ghafoor), মসজিদ বেনকুলেন (Masjid Bencoolen), মসজিদ বা'আলউই (Masjid Ba’alwie), মসজিদ বুরহানী (Masjid Burhani)। 

জায়নামাজ নির্দিষ্ট স্থানে ১ মিটার দূরে স্থাপন করতে হবে ;

এমইউআইএসের এক প্রেস বিজ্ঞপ্তিতে জানানো হয়েছে, নামাজে অংশ নেওয়া উপাসকদের মধ্যে ১ মিটার দূরত্ব নির্ধারিত জায়গায় নামাজ আদায় করতে হবে।
ইমামগণ প্রথম সারির থেকে কমপক্ষে ২ মিটার দূরে দাঁড়াবেন এবং খুতবা দেওয়ার সময় তাদের Face Shield পড়তে হবে৷ 
এমইআইআইএস-এর মতে, যারা নামাজ আদায় করতে আসবে তাদের অন্যের সাথে মিশে যাওয়া উচিত নয় এবং নামাজ শেষ হবার সাথে সাথেই মসজিদ ত্যাগ করা উচিত।
মসজিদগুলি ২৬ জুন এই শুক্রবার থেকে শুরু করে নিম্নলিখিত সুরক্ষিত ব্যবস্থাপনাগুলি কার্যকর করবে।

১) তারা পৃথক প্রবেশদ্বার এবং প্রস্থানের ব্যবস্থা করবে এবং প্রার্থনা অঞ্চলে একক প্রবেশদ্বার এবং প্রস্থান পথ বজায় রাখবে।
২)পানি ছড়িয়ে পড়া রোধ করতে পর্যাপ্ত নিরাপদ দূরত্ব এবং পানি প্রবাহ হ্রাস করার জন্য ওয়াশিং পয়েন্টগুলি পরিবর্তন করা হবে। 
৩) শীতাতপ নিয়ন্ত্রণ ব্যবস্থা থেকে ফ্যান পুনর্ব্যবহার করা থেকে অ্যারোসোল সংক্রমণ সম্ভাবনা হ্রাস করার জন্য প্রার্থনা হলগুলিতে ব্যবহার করা হবে।

যারা মসজিদে আসবে তাদের নিম্নলিখিত পদক্ষেপগুলি মেনে চলার পরামর্শ দেওয়া হয়:

১) মসজিদে আসার আগে অজু করে আসবেন। 
২) নামাজের সময় সহ মসজিদ প্রাঙ্গণে সর্বদা মাক্স পরিধান করুন৷ 
৩) তাদের নিজস্ব ব্যক্তিগত প্রার্থনা আইটেমগুলি যেমন; জায়নামাজ নিয়ে আসতে হবে৷ 
৪)প্রার্থনার পরে দ্রুত এবং আরও সুশৃঙ্খলভাবে বের হবার সুবিধার্থে জুতার ব্যাগ সঙ্গে আনতে হবে৷ 
৫) মসজিদে প্রবেশের সময় এবং মসজিদ থেকে বের হওয়ার সময় কথা বলার থেকে বিরত থাকতে হবে৷ 

মোঃ নাঈম শেখ 
সিঙ্গাপুর প্রতিনিধি

জীবননগর বাজারে মাস্ক পরিধান না করায় মোবাইল কোর্টের মাধ্যমে ১২জনকে জরিমানা

জীবননগর বাজারে মাস্ক পরিধান না করায় মোবাইল কোর্টের মাধ্যমে ১২জনকে জরিমানা



রফিকুল,জিবননগর, চুয়াডাঙ্গা :জীবননগর উপজেলায় ভ্রাম্যমাণ আদালত অভিযান পরিচালিত হয়েছে। রবিবার(২১জুন )বিকালে ভ্রাম্যমাণ আদালত পরিচালনা করেন জীবননগর উপজেলা নির্বাহী অফিসার ও নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট এস এম মুনিম লিংকন। জীবননগর পৌরশহরের বিভিন্ন স্থানে এই অভিযান পরিচালিত হয়। অভিযানের সময় মুখে মাস্ক ব্যবহার না করায় ১২ জনকে মোট ৩৭০০/- (তিন হাজার সাতশত) টাকা জরিমানা করা হয়। জীবননগর থানার অফিসার ইনচার্জ (ওসি) মোঃ সাইফুল ইসলাম সঙ্গীয় ফোর্সসহ অভিযানে নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেটকে সহযোগিতা করেন। উপজেলা নির্বাহী অফিসার ও নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট এস এম মুনিম লিংকন বলেন, করোনা ভাইরাস প্রতিরোধে সরকারি নিষেধাজ্ঞা অমান্যকারীদের বিরুদ্ধে এই ধরনের অভিযান নিয়মিত পরিচালনা করা হবে।

প্রভাবশালীর হাত থেকে দোকান ঘর রক্ষার দাবীতে সংবাদ সম্মেলন

প্রভাবশালীর হাত থেকে দোকান ঘর রক্ষার দাবীতে সংবাদ সম্মেলন





 

মোরশেদ আলম
যশোর ভ্রাম্যমাণ প্রতিনিধি  

যশোর কেশবপুর, ভান্ডরখোলা বাজারে প্রভাবশালী মনিরুল ইসলামের  হাত থেকে ৩ টি অসহায় পরিবারের ক্ষুদ্র দোকান ঘর রক্ষার দাবীতে রবিবার দুপুরে সংবাদ সম্মেলন অনুষ্ঠিত হয়েছে। 

উপজেলার ভান্ডরখোলা বাজারে বাজার কমিটির সাধারণ সম্পাদক শিক্ষক হাফিজুর রহমান সংবাদ সম্মেলনে লিখিত বক্তব্য পাঠকালে বলেন, উপজেলার খোপদহি গ্রামের মৃত তেছের আলী মোড়লের পূত্র হতদরিদ্র আব্দুল আজিজ, মৃত হামিদ আলী মোড়লের পূত্র নুর মোহাম্মদ ও নুর মোহাম্মদ মোড়লের পূত্র আমিনুর রহমান, ভান্ডারখোলা বাজারে কাছারী পুকুর ধারে হাল ২০৭২, ২০৭৫ ও ২০৭৬ দাগের উপর ২০০৮ সালে টোলঘর নির্মাণ করে আখের রস, ডাব, কলা ও চপ বিক্রি করে অদ্যবধি কোন রকমে জিবিকা নির্বাহ করে আসছে। সরকার দখল অনুযায়ী উক্ত ৩ জন সহ ১১ জনকে ৮/১২ ফুট করে ভিপি জমির অর্ন্তভুক্ত করে বাংলা ১৩৯৪ সাল হতে ১৪২৬ সাল পর্যন্ত ডিসিআর প্রদান করেন। সেই অনুযায়ী তারা উক্ত জমিতে ব্যাবসা-বাণিজ্য পরিচালনা করে আসছে।

 কিন্তু ঐ এলাকার প্রভাবশালী ফতেপুর গ্রামের শামছুর শেখের পূত্র মনিরুল ইসলাম গত রমজান মাসে উল্লেখিত ৩ জনের ব্যাবসা প্রতিষ্ঠান ভাংচুর করে একটি ঘর নির্মাণ করে। তাৎক্ষণিকভাবে হতদরিদ্র আব্দুল আজিজ, নুর মোহাম্মদ ও আমিনুর রহমান এলাকাবাসি সহযোগিতায় মনিরুল ইসলামের ঘর উচ্ছেদ করে পুনরায় তাদের ঘর নির্মাণ করে এবং বাজার কমিটির নিকট মনিরুলের বিরুদ্ধে একটি অভিযোগ দায়ের করে। 

অভিযোগের ভিত্তিতে বাজার কমিটি একটি সভার আয়োজন করলে মনিরুল ইসলাম তার স্বপক্ষে কোন কাগজপত্র দেখাতে না পারায় বাজার কমিটি ঐ তিনজনকে উক্ত জায়গায় প্রতিষ্ঠিত করে। কিন্তু গত ১৬ জুন ভোরে  মনিরুল ইসলাম ও জামাল উদ্দীনের নেতৃত্বে ১০/১২ জন পুনরায় উক্ত ৩টি দোকান ভাংচুর করে। ঐদিন আমিনুর রহমান বাদী হয়ে মনিরুল ইসলাম গংদের নামে থানায় একটি অভিযোগ করে।
 থানার এস আই পিন্টু মনিরুল ইসলামকে নোটিশ প্রদান করলেও থানায় হাজির হয়নি। বিষয়টি কেশবপুর উপজেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি এস এম রুহুল আমিনও অবগত রয়েছেন। পরবর্তীতে এলাকার গন্যমান্য ব্যাক্তিবর্গের সহযোগিতায় তারা পুনরায় দোকানঘর নির্মাণ করেছে। এদিকে প্রভাবশালী মনিরুল বর্হিরাগতদের দিয়ে উল্লেখিত হতদরিদ্র ৩ জনের ব্যাবসা প্রতিষ্ঠান ভাংচুর করে ঘর নির্মাণ করবে বলে পায়তারা চালাচ্ছে। যার ফলে হতদরিদ্র ৩ ব্যক্তি তাদের রোজগারের একমাত্র অবলম্বন দোকানঘর রক্ষার জন্য পরিবার পরিজন নিয়ে সারারাত পাহারা দিচ্ছেন। 

সংবাদ সম্মেলনের মাধ্যমে  মনিরুল ইসলামের হাত থেকে দোকানঘর রক্ষার জন্য যশোর জেলা প্রশাসন ও কেশবপুর উপজেলা প্রশাসনের আশু হস্তক্ষেপ কামনা করেছেন ভুক্তভোগি হতদরিদ্র আব্দুল আজিজ, নুর মোহাম্মদ ও আমিনুর রহমান।

মাধবপুর থানার সেকেন্ড অফিসার করোনা ভাইরাসে আক্রান্ত,

মাধবপুর থানার সেকেন্ড অফিসার করোনা ভাইরাসে আক্রান্ত,




লিটন পাঠান হবিগঞ্জ জেলা প্রতিনিধি 

জাতির এই ক্রান্তিলগ্নে সাধারণ মানুষের নিরাপত্তা নিশ্চিত করতে গিয়ে করোনায় আক্রান্ত হয়েছেন হবিগঞ্জের মাধবপুর থানার কর্মরত সেকেন্ড অফিসার মোসলেহ উদ্দিন এবং তার সহধর্মিণী বাচ্চাদের উপসর্গ রয়েছে বিষয়টি নিশ্চিত করে মাধবপুর থানার ওসি তদন্ত গোলাম দস্তগীর আহাম্মেদ জানান, সারাক্ষণ সাধারণ মানুষের সেবা করতে গিয়ে নিজের পরিবার ও পরিজনদের কথা চিন্তা না করে জীবনের ঝুকি নিয়ে কাজ করে গিয়েছেন এই এসআই মোসলেহ উদ্দিন, করোনা আক্রান্ত হয়।

এস আই মোসলেহ উদ্দিন ও উনার, পরিবার,ও আইনশৃঙ্খলা বাহিনীসহ সবার জন্য দোয়া চেয়েছেন (ওসি) তদন্ত গোলাম দস্তগীর। এবং মাধবপুর থানার সেকেন্ড অফিসার মোসলেহ উদ্দিন জানান, গত (৫-জুন) বিকাল থেকে জ্বর অনুভূত হওয়ায় মনে সন্দেহ হয়। তাই আমার স্ত্রীকে বলেছিলাম তোমরা আমার থেকে দূরে থাকো আমি সম্ভবত করোনা পজেটিভ। সে বলে যা হবার তা হবে দূরে থাকা কি সম্ভব তোমার সেবা-যত্ন করবে কে রাতে প্রচণ্ড জ্বর ও সারা শরীর ব্যথায় 

আমি অস্থির। আমার স্ত্রী মাথায় পানি, ঠালতে বলে আমি না করেছি। কিন্তু শরীর ব্যথায় যখন কাত্রাচ্ছিলাম তখন ঠিকই সে হাত-পা-শরীর টিপে ব্যথা দূর করার সর্বাত্মক চেষ্টা করেছে এবং সফল হয়েছে। ৬ এবং ৭ তারিখ থেকে থেকে জ্বর এসেছে। ডাক্তারের পরামর্শে এন্টিবায়োটিক খাওয়া শুরু করি জ্বর আসলেই শরীর প্রচণ্ড ব্যথা করতো। আমার অবুঝ নিষ্পাপ ছেলে- মেয়ে দুটি বার বার আমার কাছে এসে বলে-আব্বু 

তোমাকে পানি ডেলে দেই মাথা টিপে, দেই তুমি ভালো হয়ে যাবে ইচ্ছে করলেই তাদেরকে দূরে রাখতে পারি না। গত ৮ তারিখ মাধবপুর উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে নমুনা দেই। তারপর থেকে অপেক্ষার পালা। গত ১২ তারিখ পর্যন্ত  শারীরিক অবস্থা খুব খারাপ ছিলো। এরই মধ্যে আমি একটু সুস্থ হলেও ১৩ তারিখ রাতে আমার ৩ বছরের ছেলের জ্বর আসে। ভয়ে শরীর ঠাণ্ডা হয়ে যাওয়ার মতো অবস্থা আল্লাহর রহমতে (১৪জুন)

সকালে জ্বর কমে যায় পরের দিন আমার, স্ত্রীর জ্বর ১০০ ডিগ্রির উপরে। চোখ-মুখ অন্ধকার। কি করি ভেবে পাচ্ছি না। আমার বউ আমাকে সাহস যোগায়। জ্বর নিয়েই ঘরের সব কাজ কর্ম করে। সবাই মিলে গরম পানি খাওয়া থেকে শুরু করে ভাপ নেয়, চা খায়, ভিটামিন সি জাতীয় ফল খায়; সাথে ডাক্তারের দেয়া ঔষধ। মনে মনে ভাবি মরলে সবাই এক,

সাথেই মরবো প্রতিদিন অপেক্ষার প্রহর, গুনি কিন্তু নমুনার রেজাল্ট আসে না। গত ১৭ তারিখ রাতে আমার সাড়ে ৪ বছরের মেয়ের জ্বর আসে। মনটা আরো দূর্বল হয়ে যায়। সকালে জ্বর না থাকায় মনের মধ্যে একটু ভরসা পাই কিন্তু আমার স্ত্রীর জ্বর কমে না ডাক্তারের পরামর্শে এন্টিবায়োটিক খাওয়া শুরু করলে ২০জুন,

 মোটামুটি আমরা সবাই সুস্থবোধ করি। অবশেষে (২১-জুন) রাতে আমার নমুনা পরীক্ষার রেজাল্ট আসে করোনা পজেটিভ সবার দোয়ায় আল্লাহর রহমতে এখন সপরিবারে আগের চেয়ে অনেকটাই সুস্থ আছি, আমাদের জন্য সবার কাছে দোয়া চাই।

মাধবপুরে মাদকসহ দুই চোরাকারবারি আটক,

মাধবপুরে মাদকসহ দুই চোরাকারবারি আটক,




লিটন পাঠান হবিগঞ্জ জেলা প্রতিনিধি 

হবিগঞ্জের মাধবপুর উপজেলায় ২০০পিস ইয়াবাসহ দুই মাদক চোরাকারবারিকে আটক করেছে পুলিশ। রবিবার (২১-জুন) রাতে মাধবপুর থানার অন্তর্গত তেলিয়াপাড়া পুলিশ ফাঁড়ির পুলিশের একটি দল উপজেলার শাহজাহানপুর ইউনিয়নের নাজিরপুর গ্রামে অভিযান চালিয়ে তাদের আটক করে আটককৃতরা হলো মাধবপুর,

উপজেলার আন্দিউড়া ইউনিয়নের সুলতানপুর গ্রামের আজিজুর রহমান এর ছেলে মো: আক্তার হোসেন (২৩) ও একই উপজেলার শাহজাহানপুর ইউনিয়নের লোহাইদ গ্রামের আবুল কাসেম এর ছেলে মো: মাসুম মিয়া (২২) পুলিশ সূত্রে জানা যায়, গোপন সূত্রে খবর পেয়ে তেলিয়াপাড়া পুলিশ ফাঁড়ির,

ইনচার্জ ইন্সপেক্টর গোলাম মোস্তফার, নেতৃত্বে পুলিশের একটি দল রবিবার  রাতে নাজিরপুর গ্রামে অভিযান চালিয়ে মো:আকতার হোসেন ও মো:মাসুম মিয়া নামে দুই ব্যাক্তিকে আটক করে। এসময় তাদের শরীরে তল্লাশী করে ২০০ পিস ইয়াবা উদ্ধার, 

করে পুলিশ ইন্সপেক্টর গোলাম মোস্তফা, ঘটনার সত্যতা নিশ্চিত করে জানান আটককৃতদের, বিরুদ্ধে মাধবপুর থানায় মাদকদ্রব্য নিয়ন্ত্রণ আইনে মামলা দায়েরের প্রস্তুতি চলছে।