নবীনগরে দুই সন্তানের জননী গলায় ফাঁস লাগিয়ে আত্মহত্যা

নবীনগরে দুই সন্তানের জননী গলায় ফাঁস লাগিয়ে আত্মহত্যা





এস.এম,অলিউল্লাহ  ব্রাহ্মণবাড়িয়া প্রতিনিধি

ব্রাহ্মণবাড়িয়ার নবীনগর উপজেলার সলিমগঞ্জ ইউনিয়নের বাড্ডা(মধ্য পাড়া)গ্রামের মাহমুদা বেগম(৪২)নামে দুই সন্তানের জননী মঙ্গলবার(১৭/০৬)ভোরে গলায় ফাঁস লাগিয়ে আত্মহত্যা করেছেন।
মাহমুদা বেগম বাড্ডা গ্রামের দুবাই প্রবাসী আক্তার হোসেনের স্ত্রী।মাহমুদা বেগমের দুটি ছেলে সন্তান রয়েছে এবং দুই ছেলেই প্রবাসী বড় ছেলে মাসুদ বাহারান প্রবাসী ও ছোট ছেলে মাহবুব সৌদি প্রবাসী।মাহমুদা বেগমের বাবার বাড়ি পার্শ্ববর্তী বাঞ্ছারামপুর উপজেলার দরিকান্দি গ্রামে।
স্থানীয় সূত্রে জানা যায়,মাহমুদা বেগমের স্বামী,দুই সন্তান,প্রবাসে থাকায় তিনি একাই বসবাস করতেন বাড়িতে প্রতিদিনের ন্যায় রাতে নিজ ঘরেই থাকেন,সকালে প্রতিবেশিরা ঘরের দরজা খোলা না দেখে ডাকাডাকি করলে কোন সাড়াশব্দ না পেয়ে সন্দেহ হলে কৌশলে দরজা খুলে দেখতে পান মাহমুদা বেগম নিজ ঘরের সিলিং ফ্যানের সাথে ফাঁস লাগিয়ে ঝুলছে।
খবর পেয়ে সলিমগঞ্জ পুলিশ ক্যাম্প ইনচার্জ এসআই মামুন লাশের সুরতহাল শেষে ময়নাতদন্তের জন্য জেলা মর্গে প্রেরণ করেন।
নবীনগর থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা(ওসি)রনোজিত রায়,ঘটনার সত্যতা নিশ্চিত করে বলেন,মরদেহ উদ্ধার করে ময়নাতদন্তের জন্য পাঠানো হয়েছে,এবং একটি অপমৃত্য(ইউডি)মামলা হয়েছে রিপোর্ট আসলে আইনগত প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা নেওয়া হবে

পোস্ট অফিসের সিঁড়িতে ঝুলন্ত দুই কিশোরীর মরদেহ উদ্ধার

পোস্ট অফিসের সিঁড়িতে ঝুলন্ত দুই কিশোরীর মরদেহ উদ্ধার





 
এস.এম অলিউল্লাহ  ব্রাহ্মণবাড়িয়া প্রতিনিধি :


ব্রাহ্মণবাড়িয়ার কসবা উপজেলা থেকে সোনিয়া ও সুমাইয়া নামে দুই কিশোরীর
ঝুলন্ত মরদেহ উদ্ধার করেছে পুলিশ। বুধবার (১৭) সন্ধ্যা ৬টার দিকে উপজেলার
কুটি ইউনিয়নের কুটি পোস্ট অফিসের পেছন থেকে মরদেহ দুটি উদ্ধার করা হয়।
নিহতদের বয়স আনুমানিক ১৩-১৪ বছর বলে জানিয়েছে পুলিশ। নিহত সুমাইয়া কুটি
গ্রামের উত্তরপাড়ার বাবুল মিয়ার মেয়ে ও সোনিয়া একই এলাকার বিল্লাল মিয়ার
মেয়ে।

জেলার সহকারী পুলিশ সুপার (কসবা সার্কেল) মিজানুর রহমান বিষয়টি নিশ্চিত
করে জানান, কুটি পোস্ট অফিসের পেছনে রাখা একটি লোহার সিঁড়ির সঙ্গে ফাঁস
লাগানো অবস্থায় ওই দুই কিশোরীর মরদেহ দেখতে পেয়ে স্থানীয়রা পুলিশে খবর
দেয়। পরে পুলিশ ঘটনাস্থলে গিয়ে মরদেহ উদ্ধার করে।

তিনি বলেন, নিহতদের পরিবারের সঙ্গে আমরা কথা বলেছি। প্রাথমিকভাবে ঘটনাটি
আত্মহত্যা বলে মনে হচ্ছে। তবে ময়নাতদন্তের রিপোর্ট আসার পর মৃত্যুর সঠিক
কারণ জানা যাবে। মরদেহ দুটি ময়নাতদন্তের জন্য জেলা সদর হাসপাতাল মর্গে
পাঠানো হচ্ছে।

বিদ্যুৎ স্পৃষ্টে বাবা ও ছেলের মৃত্যু!

বিদ্যুৎ স্পৃষ্টে বাবা ও ছেলের মৃত্যু!





মিজানুর রহমান ইমন, ময়মনসিংহ জেলা প্রতিনিধিঃ

নেত্রকোনায় পূর্বধলায় উপজেলার জালশুকা ( শ্যামগঞ্জ) বাজার সংলগ্ন এলাকায় বিদ্যুৎ স্পৃষ্টে বাবা ছেলের মৃত্যু হয়েছে, ঘটনাটি ঘটেছে বুধবার ১৭জুন ভোর রাতে । নিহত ব্যাক্তিরা হলেন বাবা সমর আলী (৫৪) ও তার ছেলে স্নাতক শেষ বর্ষের শিক্ষার্থী পাপ্পু রহমান (২৭)

পরিবার ও স্থানীয় সূত্রে জানা যায়, ভোর রাতে আনুমানিক ৪:টার দিকে সমর আলী তার নিজ ফিসারিতে পানি দেওয়ার জন্য বৈদ্যুতিক মটর সুইচ দিয়ে অন করতে চাইলে ছেড়া তার হাত  জড়িয়ে যায় এসময় তার ছেলে পাপ্পু তাকে উদ্ধার করতে গেলে বাবা ছেলে ঘটনাস্থলেই বিদ্যুৎ স্পৃষ্ট মারা যান ।


সাংবাদিক মোহাম্মদ মাসুদের বাবা ইন্তেকাল করছেন

সাংবাদিক মোহাম্মদ মাসুদের বাবা ইন্তেকাল করছেন



  নিউজ ডেস্কঃ  
দৈনিক অন্যদিগন্ত পত্রিকার সম্পাদক মোহাম্মদ মাসুদ এর পিতা শামসুল হক ১৭ জন বুধবার  বিকেল ৩ ঘটিকায় কুমিল্লা ডায়বেটিক হসপিটালে ইন্তেকাল করেছেন। ইন্না লিল্লাহি ওয়া ইন্না ইলাইহি রাজিউন।মৃত্যু কালে তিনি স্ত্রী, ৩ ছেলে ও ১ মেয়ে রেখে গেছেন। 

মৃত শামসুল হক কুমিল্লা জেলার বুড়িচং উপজেলার বাকশীমুল গ্রামের বাকশীমুল উচ্চ বিদ্যালয়ের প্রাক্তন শিক্ষক ছিলেন।স্কুল প্রতিষ্ঠা কলাে যথেষ্ট অবদান রেখেছিলেন। কর্মজীবনে তিনি চট্টগ্রামে ছিলেন। এবং হোমিওপ্যাথিক চিকিৎসক হিসেবে দীর্ঘ দিন যাবত মানুষের পাশে থেকে সেবা করে গেছেন। তিনি হৃদরোগে আক্রান্ত হয়ে মৃত্যু বরণ করেন।সকলে তার আত্মার মাগফিরাতের জন্য দোয়া কামনা  করেন।

ঈদ উপহারের টাকা আত্মসাতের অভিযোগে মেহারি ইউপি চেয়ারম্যান সাময়িক বরখাস্ত

ঈদ উপহারের টাকা আত্মসাতের অভিযোগে মেহারি ইউপি চেয়ারম্যান  সাময়িক বরখাস্ত

 



এস.এম অলিউল্লাহ ব্রাহ্মণবাড়িয়া প্রতিনিধিঃ


দরিদ্রদের প্রধানমন্ত্রীর ঈদ উপহারের তালিকায় ছেলেসহ আত্মীয়দের নাম ঢোকানোর অভিযোগে ব্রাহ্মণবাড়িয়ার কসবা উপজেলার মেহারি ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যানকে সাময়িক বরখাস্ত করা হয়েছে।
তদন্তে প্রমাণ হওয়ায় বুধবার তাকে সাময়িকভাবে বরখাস্ত করে প্রজ্ঞাপন জারি করেছে মন্ত্রণালয়ের স্থানীয় সরকার বিভাগ।
ব্রাহ্মণবাড়িয়ার অতিরিক্ত জেলা প্রশাসক (সার্বিক) ও স্থানীয় সরকার বিভাগের ভারপ্রাপ্ত উপ-পরিচালক মোহাম্মদ শামসুজ্জামান,মেহারি ইউপি চেয়ারম্যান আলম মিয়াকে সাময়িক বরখাস্ত করার বিষয়টি জানান।

টাংগাইলে করোনা প্রতিরোধক হোমিও মেডিসিন Ars.Alb-30 বিনামূল্যে বিতরণ করলেন ডা.এম.এ.মান্নান

টাংগাইলে করোনা প্রতিরোধক হোমিও মেডিসিন Ars.Alb-30 বিনামূল্যে  বিতরণ করলেন ডা.এম.এ.মান্নান



কপোতাক্ষ নিউজ ডেস্ক
:নাগরপুরে তথা সমগ্র টাংগাইলে গরিবের চিকিৎসক নামে সুপরিচিতি ও মানবতার বন্ধু,
আহাম্মদ হোসেন হোমিও ক্লিনিকের প্রতিষ্ঠাতা চেয়ারম্যান ও বিশিষ্ট হোমিওপ্যাথিক কনসালটেন্ট ডা.এম.এ.মান্নান এর নিজস্ব অর্থায়নে টাংগাইলে মহামারী করোনা ভাইরাস প্রতিরোধের জন্য প্রতিরোধক বা ইমিউনিটি বুষ্টার হোমিও ওষুধ আর্সেনিকাম এ্যালবাম ৩০ শক্তি বিভিন্ন শ্রেনীর মানুষের মাঝে ফ্রি বিতরণ করলেন। 

আজ বুধবার ১৭ জুন ২০২০ খ্রি.সকাল ১১.৩০ মিনিটে করোনা ভাইরাস প্রতিরোধক হোমিও ওষুধ আর্সেনিকাম এ্যালবাম ৩০  বিতরণ করা হয়। 

বিতরন কালে ডা.এম.এ.মান্নান বলেন-আমি করোনা প্রতিরোধে আমার নিজস্ব উদ্যোগে কাজ করে যাচ্ছি। আমি বিভিন্ন সময়ে নাগরপুর বাসীর মাঝে মাস্ক,সাবান,হ্যান্ডস্যানিটাইজার, মেডিসিন বিতরণ করেছি এবং অসহায়,কর্মহীনদের মাঝে খাদ্য সামগ্রী ও ছাত্রদের মাঝে শিক্ষা উপকরন বিতরন করেছি যা নাগরপুর বাসী অবগত আছে এবং বিভিন্ন মিডিয়ায় প্রকাশ হয়েছে। তারই ধারাবাহিক হিসাবে আমার প্রিয় স্যার ডা.তোফাজ্জল স্যার,ডা.কায়েম স্যারের পরামর্শে নাগরপুরবাসী তথা টাংগাইল বাসীর জন্য করোনা প্রতিরোধক হোমিও মেডিসিন Ars.Alb.30 বিতরনের কর্মসৃচী গ্রহন করে তা ববাস্তবায়ন করছি,আলহামদুলিল্লাহ। আমি ১০০০ হাজার পরিবারকে ফ্রি হোমিও প্রতিরোধক মেডিসিন দিব এবং পর্যাক্রমে বিভিন্ন সরকারি ও বেসরকারি দপ্তরে আর্সেনিক এ্যালবাম ৩০ মেডিসিন প্রদান করবো। সবাই আমার জন্য দোয়া করবেন আমি যেন আপনাদের পাশে থেকে দেশ ও মানুষের সেবা করতে পারি। সবাই ভাল থাকেন সুস্হ থাকেন,আল্লাহ হাফেজ। 

আর্সেনিকাম এ্যালবাম ৩০ শক্তি বিতরন কালে  উপস্হিত ছিলেন-হোমিও মেডিকেল অফিসার ডা.মো.কাউছার খান,হোমিও প্রেমিক মো.জহিরুল ইসলাম,প্রভাষক মো.মামুন দুয়াজানী কলেজ পাড়া ছাত্র কল্যান পরিষদের মহাসচিব ও মিডিয়া কর্মী সাংবাদিক সজিব হুসাইন মোহাম্মদ হাসান ও বিশ্ববিদ্যালয় ছাত্র ইমরোজ আহসান খান ও মো.তোফায়েল আহমেদ প্রমুখ। 

 ইতোপূর্বে টাঙ্গাইল হোমিওপ্যাথিক মেডিক্যাল কলেজ ও হাসপাতালের পক্ষ থেকে টাঙ্গাইলের সম্মানিত জনপ্রতিনিধি গণ, জেলা প্রশাসন, পুলিশ প্রশাসন, বিচার প্রশাসন,টাঙ্গাইল পৌরসভা ও আপামর জনসাধারণের মাঝে ঔষধটি বিতরণ করা হয়েছে এবং টাঙ্গাইল হোমিওপ্যাথিক মেডিক্যাল কলেজ ও হাসপাতালের আউটডোর থেকে প্রতিদিন সাধারণ জনগণকে ঔষধসেবা প্রদান কার্যক্রমটি এখনো চলমান রয়েছে।

আশাশুনির শ্রীউলায় নদীতে ডুবে মৃত মুক্তিযোদ্ধা পরিবারকে সহায়তা প্রদান

আশাশুনির শ্রীউলায় নদীতে ডুবে মৃত  মুক্তিযোদ্ধা পরিবারকে সহায়তা প্রদান




আহসান উল্লাহ বাবলু  আশাশুনি ( সাতক্ষীরা)  প্রতিনিধি: আশাশুনি উপজেলার শ্রীউলা ইউনিয়নে নদীর স্রোতে তলিয়ে গিয়ে মৃত মুক্তিযোদ্ধা পরিবারকে খাদ্য সহায়তা প্রদান করা হয়েছে। পুলিশ সুপার সাতক্ষীরার সহায়তায় এ খাদ্য বিতরণ করা হয়। শ্রীউলায় সুপার সাইক্লোন আম্ফানে ভেড়ী বাধ ভাঙ্গনের স্রোতে ডুবে বীর মুক্তিযোদ্ধা আব্দুস সামাদ ইন্তেকাল করেন। মরহুমে ছেলের হাতে এসপি সাহেবের পক্ষে খাদ্য সহায়তা তুলে দেন এএসপি (দেবহাটা সার্কেল) মোঃ ইয়াছিন আলী। এসময় আশাশুনি থানা অফিসার ইনচার্জ গোলাম কবীর ও শ্রীউলা ইউপি চেয়ারম্যান আবু হেনা সাকিল উপস্থিত ছিলেন।

করোনা দুর্যোগে সব্জি বিতরণে অনন্য দৃষ্টান্ত স্থাপন করে চলেছেন সাতক্ষীরার এজাজ আহমেদ স্বপন

করোনা দুর্যোগে সব্জি বিতরণে অনন্য দৃষ্টান্ত স্থাপন করে চলেছেন সাতক্ষীরার এজাজ আহমেদ স্বপন




আজহারুল ইসলাম সাদীঃ
মহামারী করোনা দুর্যোগের এই সংকট লগ্নে কর্মহীন অসহায় মানুষের মাঝে সব্জি বিতরণ করে অনান্য দৃষ্টান্ত নজির স্থাপন করে চলেছেন সাতক্ষীরার কৃতি সন্তান এজাজ আহমেদ স্বপন।
করোনা পরিস্থিতিতে প্রায় ২ মাস যাবৎ দৈনিক প্রায় এক হাজার দরিদ্র মানুষকে বিনামূলে সবজি বিতরণ করে চলেছেন।
সাতক্ষীরা শহরের সরকারি গার্লস হাইস্কুলের সামনে বিতরণ করা হয় নানা রকমের এই সব্জি।
গরীব মানুষ তাদের প্রয়োজন মতো কয়েক প্রকার সবজি সেখান থেকে নিয়ে যান, প্রতিদিন সকাল থেকে দুপুর পর্যন্ত বিতরণ করা হয় এই সব্জি।
করোনা সংকট থেকে দেশের মানুষকে মুক্ত রাখতে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা বিগত মার্চ মাসের ২৬ তারিখ থেকে প্রায় আড়াই মাস সাধারণ ছুটি ঘোষণা করেন। এ সময় দেশের আপামর দরিদ্র মানুষ, বিশেষ করে শ্রমজীবী নারী-পুরুষ যারা দিন আনা দিন খাওয়া সে সকল মানুষকে, করোনাকালে সরকারি, বেসরকারি ব্যাক্তি বা প্রতিষ্ঠান যখন তাদের মাঝে, চাল, ডাল ও তেলসহ নিত্যপ্রয়োজনীয় দ্রবাদী বিতরণ করছেন ঠিক তখনই দরিদ্র মানুষের বন্ধু এজাজ আহমেদ স্বপন চিন্তা করেন মানুষের ভাতের সাথে প্রয়োজন সব্জি, তাই তিনি শুরু করলেন গণহারে সব্জি বিতরণের এই কার্যক্রম।
সাতক্ষীরা সরকারি গার্লস হাইস্কুলের সব্জি বিতরণ কেন্দ্রের সামনে বহু অসহায় পরিবারের সাথে কথা বলে জানা যায় তারা, করোনা দুর্যোগের এই সংকটকালে দু’মাস যাবৎ এজাজ আহমেদ স্বপন এর বিনামূল্যে বিতরণকৃত নানা পদের শাক-সব্জি তাদের পছন্দ মত এখান থেকে নিয়ে তাদের চাহিদা পুরণ করছেন।
আরো কয়েকজন জানান তারা বড় বাজার থেকে অনান্য সামগ্রী ক্রয় করে সেঞ্চুরী একাডেমি থেকে লাউ, কুমড়া, পুইশাক, পটল, ঢেড়স, কাঁচামরিচসহ বিভিন্ন তরকারী বাসায় নিয়ে যাচ্ছেন।
এই দূর্যোগে মানুষের পাশে যেভাবে দাঁড়িয়েছেন এজাজ আহমেদ স্বপন তা নিসন্দেহে প্রসংসার দাবি রাখে।
সবাই যখন ছাত্রজীবন শেষে রাজনৈতিক ও ব্যবসায়িক ক্যারিয়ার গড়তে ব্যাস্ত, এজাজ আহমেদ স্বপন তখন ব্যস্ত হয়ে পড়েছেন তার নিজস্ব সাধ্যের মধ্যে যা আছে তা দিয়ে মানবসেবা দিতে।
এজাজ আহমেদ স্বপন বলেন, ২০০০ সালে বন্যায় সেঞ্চুরী একাডেমির ব্যানারে তিনি রুটি বানানো কর্মসূচি চালু করেন। সেখান থেকে বন্যায় ক্ষতিগ্রস্তরা রুটি নিয়ে যেতেন। একই সময় বন্যায় ক্ষতিগ্রস্ত পরিবারের শিক্ষার্থীদের মধ্যে ফ্রি কোচিং, বিনামূল্যে খাতাকলম বিতরণ ও পরীক্ষার ফিস প্রদান করতেন। সেসময়ে তার বিনামূল্যের এই কার্যক্রম সাতক্ষীরাবাসীর হৃদয় কেড়েছিল।
সেই অভিজ্ঞতাকে কাজে লাগিয়ে মহামারী করোনার ছোবলে অসহায় সহস্রাধিক মানুষের মাঝে বিতরণের ব্যবস্থা করেছেন তাজা এই শাক-সব্জি।
তার এই উদ্যোগে একদিকে প্রান্তিক কৃষকের কাছ থেকে সরাসরি যেমন শাক-সব্জি ক্রয় করার ফলে, কৃষক ন্যায্য মূল্য পেয়ে উপকৃত হচ্ছেন, ঠিক তেমনি অসহায় মানুষ প্রতিদিন বিনামূল্যে শাক-সব্জি পেয়ে হচ্ছেন যার পর নেই খুঁশি।
সেঞ্চুরী একাডেমির মাধ্যমে শুধু সাতক্ষীরা পৌরসভার ৯টি ওয়ার্ডের মানুষই এই সুবিধা ভোগ করছেন তা কিন্ত নয়?
সাতক্ষীরা সদর উপজেলার বিভিন্ন ইউনিয়নের মানুষকে প্রতিদিন সহযোগিতা দিয়ে এসেছেন।
এ পর্যন্ত প্রায় ৫০ হাজার পরিবারের মাঝে তিনি এই সব্জি বিতরণ করেছেন।
৭ এপ্রিল থেকে সাতক্ষীরা সরকারি বালিকা বিদ্যালয়ের সামনে একটি বিতরণ কেন্দ্র করে বিনামূল্যে শাক-সব্জি বিতরণ কার্যক্রমটি অব্যাহত রেখেছেন।
প্রতিদিন সাতক্ষীরা পৌরসভার ৯টা ওয়ার্ডসহ পার্শ্ববর্তী লাবসা, নগরঘাটা, আলিপুর, ধূলিহর, ব্রহ্মরাজপুর, বৈকারীসহ বল্লী ইউনিয়নের বিভিন্ন স্থানে বিনামূল্যে শাক-সব্জি বিতরণ চলমান অব্যাহত রেখেছন।
তিনি করোনা পরিস্থিতির কারনে পাটকেলঘাটার মৌলবীবাজার, আঠারোমাইল সহ সাতক্ষীরা বড়বাজার থেকে পাইকারি সব্জি ক্রয় করেন। এছাড়া সদরের গোঁবরদাড়ি, ঘুডেরডাঙ্গী, আলিপুর, ভাড়ুখালী, মাহমুদপুর, কাসেমপুর, আবাদেরহাটসহ বিভিন্ন এলাকার সরাসরি চাষীদের ক্ষেত থেকে সব্জি ক্রয় করেন। এতে কৃষকরাও হচ্ছেন লাভবান।
তার এই বিনামূল্যে শাক-সব্জি বিতরণ কার্যক্রমে উদ্বুদ্ধ হয়ে বর্তমানে সাতক্ষীরা, খুলনাসহ দেশের বিভিন্ন স্থানে বিনামূল্যে শাক-সব্জি বিতরন করেচলেছেন অনেক ব্যক্তি ও প্রতিষ্ঠান।
এই উদ্যোগের ফলে স্থানীয় বাজারগুলোতে জনসমাগম কমানো অনেকটা সম্ভব হয়েছে।
এছাড়াও এজাজ আহমেদ স্বপন সাতক্ষীরাসহ উপকুলে আম্ফানে গাছের ক্ষতির কথা বিবেচনা করে ছাত্রজীবনের অভ্যাস মতো শুরু করেছেন গাছের চারা বিতরণ কার্যক্রম। তিনি জেলাব্যাপি এক লক্ষ ফলজ ও বনজ গাছের চারা বিতরণ ও রোপন করার কাজ শুরু করেছেন।
’৯০ এর দশকে সাতক্ষীরায় শেখ এজাজ আহমেদ স্বপন ছিলেন, তুখোড় ছাত্রনেতা। তিনি জেলা ছাত্রলীগের ভারপ্রাপ্ত আহ্বায়ক, বাংলাদেশ ছাত্রলীগের জাতীয় পরিষদ সদস্য, জেলা ছাত্রলীগের সিনিয়র সহ-সভাপতি, সরকারি কলেজ ছাত্রলীগের আহবায়ক সহ গুরুত্বপূর্ণ পদে দায়িত্ব পালন করেছেন।
এখন তিনি ৮০ ও ৯০ এর দশকের সাবেক ছাত্রনেতাদের সংগঠিত করে গড়ে তুলেছেন ‘সাবেক ছাত্রনেতা সমন্বয় কমিটি’। গত নির্বাচনে তাদের ভুমিকা ছিল চোখে পড়ার মত। এই সংগঠনে তিনি সাতক্ষীরার সদস্য সচিবের দায়িত্ব পালনের পাশাপাশি ভোমরা স্থলবন্দর ব্যবহারকারী অ্যাসোসিয়েশনের আহ্বায়ক হিসেবেও দায়িত্ব পালন করছেন সুনামের সহিত।
এজাজ আহমেদ স্বপন মনে করেন মানুষের দুঃসময়ে বিত্তবাদের পাশে দাঁড়ানো দরকার তাই তিনি নিজে ও সমাজের নিতান্ত অসহায় মানুষের দূর্যোগে এভাবে পাশে দাঁড়িয়েছেন।

আশাশুনিতে জেলেদের মাঝে সরকারি সহায়তা প্রদান

আশাশুনিতে জেলেদের মাঝে  সরকারি সহায়তা প্রদান




আহসান উল্লাহ বাবলু উপজেলা প্রতিনিধিঃ আশাশুনি উপজেলার প্রতাপনগর ইউনিয়নে জাটকা নিধন ও বিক্রয় থেকে বিরত থাকার লক্ষ্যে নিবন্ধিত জেলেদের মাঝে আর্থিক সংকট লাঘবের জন্য সরকারি চাল বিরতণ করা হয়েছে। বুধবার সকাল ১০ টায় প্রতাপনগর ইউনিয়ন পরিষদ চত্বরে এ চাল বিতরণ করা হয়।
ইউনিয়নের ৩, ৪ ও ৫নং ওয়ার্ডে জেলেদের মাঝে ৫৬ কেজি করে ভিজিএফ এর চাল বিতরণ কার্যক্রমের উদ্বোধন করেন, প্রতাপনগর ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান ও প্রতাপনগর ইউনিয়ন আওয়ামীলীগের সভাপতি শেখ জাকির হোসেন। এসময় উপস্থিত ছিলেন প্রতাপনগর ইউপি সচিব, ইউপি সদস্য/সদস্যা, রাজনৈতিক ও গন্যমান্য ব্যক্তিবর্গ।


শ্রীউলায় ফ্রি মেডিকেল ক্যাম্প বৃহস্পতিবার

শ্রীউলায় ফ্রি মেডিকেল ক্যাম্প বৃহস্পতিবার




আহসান  উল্লাহ  বাবলু উপজেলা প্রতিনিধিঃ  আশাশুনি উপজেলার শ্রীউলা ইউনিয়নে ফ্রি মেডিকেল ক্যাম্প অনুষ্ঠিত হবে বৃহস্পতিবার (১৮ জুন)।
সুপার সাইক্লোন আম্পানে ক্ষতিগ্রস্ত এলাকার সকল স্তরের মানুষকে  সকল প্রকার রোগের বিনামূল্যে চিকিৎসা সেবা প্রদান করা হবে। মাড়িয়ালা মাধ্যমিক বিদ্যালয় সংলগ্ন সাইক্লোন শেল্টারে বেলা ১০ টা থেকে বিকাল ৪ টা পর্যন্ত চিকিৎসা সেবা প্রদান করবেন প্রখ্যাত চিকিৎসক বৃন্দ। সাবেক স্বাস্থ্যমন্ত্রী অধ্যাপক ডাঃ আ ফ ম রুহুল হক এমপির ব্যবস্থাপনায় এবং বাংলাদেশ ঔষধ শিল্প সমিতির ও আশাশুনি উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সের সহযোগিতায়, নলতা হাসপাতাল এন্ড কমিউনিটি হেলথ ফাউন্ডেশনের বাস্তবায়নে মিডিয়া পার্টনারের দায়িত্বে আছে রেডিও নলতা ৯৯.২ এফএম। ক্যাম্পে চিকিৎসাপত্রের পাশাপাশি ফ্রি ঔষধ প্রদান করা হবে।


কাদাকাটি এইচবিবি রাস্তার কাজ পরিদর্শন

কাদাকাটি এইচবিবি রাস্তার  কাজ পরিদর্শন




আহসান উল্লাহ বাবলু উপজেলা প্রতিনিধিঃ 
আশাশুনি উপজেলার কাদাকাটি ইউনিয়নে একটি এইচবিবি রাস্তার নির্মান কাজ পরিদর্শন করা হয়েছে। বুধবার কাদাকাটি ইউনিয়নের শাহনগর মতিকুল সরদারের বাড়ির সিকট পীচের রাস্তার মুখ হতে বলাবুনিয়া গামীণ রাস্তা। গ্রামীণ মাটির রাস্তা সমুহ টেকসই করণের লক্ষ্যে হেরিংবন্ড (এইচবিবি) করণ প্রকল্প এর আওতায় ৭৫০ মিটার রাস্তাটির কাজ করেছেন ঠিকাদার আঃ হামিদ। দুর্গোগ ব্যবস্থাপনা ও ত্রাণ মন্ত্রণালয়ের অধীন দুর্যোগ ব্যবস্থাপনা অধিদপ্তরের বাস্তবায়নে রাস্তাটি নির্মান কাজের জন্য দাখিলকৃত মূল্য ৩৯ লক্ষ ৮৯০ টাকা। ২০১৯-২০ অর্থ বছরের ব্যয় বরাদ্দে রাস্তাটির নির্মান কাজ ইতিমধ্যে শেষ হয়েছে। কাজ পরিদর্শন করেন, উপজেলা নির্বাহী অফিসার মীর আলিফ রেজা। এসময় উপজেলা প্রকল্প বাস্তবায়ন কর্মকর্তা সোহাগ খান ও সংশ্লিষ্ট ঠিকাদার উপস্থিত ছিলেন। রাস্তার পাশে মাটি না দেয়ায় রাস্তা ভেঙে যায়, এর থেকে রক্ষা পেতে পরিদর্শনকালে ঘের মালিকদের আউটড্রেন করার নির্দেশ প্রদান করেন ইউএনও মীর আলিফ রেজা।

ঝিনাইদহ কোটচাঁদপুর বাজার এলাকা হতে ৩০৫ পিস ইয়াবাসহ ০১ জন মাদক ব্যবসায়ীকে গ্রেফতার করেছে র‌্যাব-৬

ঝিনাইদহ কোটচাঁদপুর বাজার এলাকা হতে ৩০৫ পিস ইয়াবাসহ ০১ জন মাদক ব্যবসায়ীকে গ্রেফতার করেছে র‌্যাব-৬







খোন্দকার আব্দুল্লাহ বাশার, ঝিনাইদহ জেলা প্রতিনিধি। 



বর্তমান প্রেক্ষাপটে তরুণ সমাজ ধ্বংসের সবচেয়ে আলোচিত এবং অন্যতম মাধ্যম হিসেবে মাদকদ্রব্যকে ব্যবহার করা হচ্ছে। তদ্রুপ এক শ্রেণীর অসাধু মাদক ব্যবসায়ী নিজস্ব স্বার্থ সিদ্ধির উদ্দেশ্যে অবৈধভাবে দেশের সকল শিক্ষা প্রতিষ্ঠানসহ প্রত্যন্ত অঞ্চলের যুব সমাজের হাতে মাদকদ্রব্য বা নেশাজাতীয় দ্রব্য পৌঁছে দেওয়ার অপচেষ্টা চালাচ্ছে। সমাজে মাদকের ভয়াল থাবার বিস্তার রোধকল্পে এই সকল মাদক ব্যবসায়ীদের গ্রেফতারসহ মাদক বিরোধী অভিযানে র‌্যাব সর্বদা সক্রিয় ভূমিকা পালন করে আসছে। এরই ধারাবাহিকতায় ১৬ জুন ২০২০ ইং তারিখ আনুমানিক বিকাল ০৩:০০ ঘটিকার সময় গোপন সংবাদের ভিত্তিতে সিপিসি-২, র‌্যাব-৬ এর একটি চৌকস আভিযানিক দল কোম্পানী কমান্ডার অতিরিক্ত পুলিশ সুপার মোঃ মাসুদ আলম এবং স্কোয়াড কমান্ডার এএসপি এইচ এম শফিকুর রহমান এর নেতৃত্বে ঝিনাইদহ জেলার কোটচাঁদপুর থানা এলাকায় মাদক বিরোধী অভিযান পরিচালনার নিমিত্তে গমন করেন। পরবর্তীতে ১৬ জুন ২০২০ ইং তারিখ বিকাল ০৩:২৫ ঘটিকার সময় ঝিনাইদহ জেলার কোটচাঁদপুর থানাধীন কোটচাঁদপুর বাজারের কন্টিনেন্টাল কুরিয়ার সার্ভিসের সামনে অভিযান পরিচালনা করে ১ জন মাদক ব্যবসায়ী মোঃ আহাদ আলী (২৪), পিতা- মোঃ আক্কাছ আলী, সাং- কোটচাঁদপুর হাসপাতাল পাড়া, ২নং ওয়ার্ড কোটচাঁদপুর পৌরসভা, থানা-কোটচাঁদপুর, জেলা- ঝিনাইদহকে গ্রেফতার করা হয়। উক্ত গ্রেফতারকৃত আসামীর দখল হতে ৩০৫ পিচ ইয়াবা ট্যাবলেট, ১ টি মোবাইল সেট এবং ১ টি সীম কার্ড উদ্ধার করা হয়। পরবর্তীতে উক্ত উদ্ধারকৃত আলামত ও গ্রেফতারকৃত আসামীকে ঝিনাইদহ জেলার কোটচাঁদপুর থানায় হস্তান্তর করতঃ মাদক দ্রব্য নিয়ন্ত্রন আইন ২০১৮ এর ৩৬(১) সারণির ১০(ক) ধারার মামলা করা হয়।

নওগাঁর সাপাহারে বীর মুক্তিযোদ্ধা ফজলুর রহমান কে রাষ্ট্রীয় মর্যাদায় দাফন সম্পন্ন

নওগাঁর সাপাহারে বীর মুক্তিযোদ্ধা ফজলুর রহমান কে রাষ্ট্রীয় মর্যাদায় দাফন সম্পন্ন






মোঃ ফিরোজ হোসাইন 
 রাজশাহী ব্যুরো

নওগাঁর সাপাহারে বীর মুক্তিযোদ্ধা ফজলুর রহমান কে রাষ্ট্রীয় মর্যাদায় দাফন করা হয়েছে।

মঙ্গলবার বিকাল ৫ টার পর বার্ধক্যজনিত কারণে তিনি মৃত্যুবরণ করেন (ইন্না….রাজিউন)। মৃত্যুকালে তার বয়স হয়েছিল ৭০বছর।

বুধবার সকাল ১১ টার সময় ,কোচকুড়লীয়া ফুটবল মাঠে নওগাঁ জেলা পুলিশের একটি চৌকস দল রাষ্ট্রীয় ভাবে গার্ড অব অনার প্রদান করে, পরে তাকে পারিবারিক করস্থানে সমাহিত করা হয়।
এসময় সেখানে উপস্থিত ছিলেন উপজেলা চেয়ারম্যান আলহাজ্ব শাজাহান হোসেন,উপজেলা নির্বাহী অফিসার কল্যাণ চৌধুরী, অফিসার ইনচার্জ আব্দুল হাই, সাবেক মুক্তিযোদ্ধা কমান্ডার আলহাজ্ব ওমর আলী,প্রেস ক্লাব সভাপতি জাহাংগীর আলম প্রমূখ।

এছাড়াও বীরমুক্তিযোদ্ধা বৃন্দ, মুক্তিযোদ্ধা সন্তান কমান্ড সদস্য বৃন্দ সহ এলাকাবাসী উপস্থিত ছিলেন।
জানাগেছে বীর মুক্তিযোদ্ধা ফজলুর রহমান মৃত্যুকালে তিনি স্ত্রী সহ ৩ ছেলে, ৩ মেয়ে, নাতী-নাতনীসহ অসংখ্য গুণগ্রাহী রেখে গেছেন।

কিশোরগঞ্জে একই পরিবারে তিনজন সহ মোট ৭ জন করোনা আক্রান্ত!

কিশোরগঞ্জে একই পরিবারে তিনজন সহ মোট ৭ জন করোনা আক্রান্ত!




মো: লাতিফুল  আজম
কিশোরগঞ্জে  নীলফামারী  প্রতিনিধি:

নীলফামারীর কিশোরগঞ্জে নতুন করে একই পরিবারের ৩ জনসহ আরও ৭ জন করোনা রোগী শনাক্ত। গত ১০ ও ১১ জুনের নমুনায় এ ৭ জনের শরীরে করোনা সংক্রমণ ধরা পড়েছে। এনিয়ে উপজেলায় করোনা রোগীর সংখ্যা দাঁড়ালো ২৫ জন। আজ সন্ধ্যায় নতুন করে  ৭ জন করোনায় শনাক্তের বিষয়টি নিশ্চিত করেন উপজেলা স্বাস্থ্য ও পঃ পঃ কর্মকর্তা ডাঃ আবু শফি মাহুমদ।

উপজেলা স্বাস্থ্য ও পঃ পঃ কর্মকর্তা ডাঃ আবু শফি মাহমুদ জানান- গত ১০ ও ১১ জুন উপজেলা হতে নমুনা দিনাজপুর পিসিআর ল্যাবে পাঠানো হয়। আজ সন্ধ্যায় এসব নমুনার ফলাফল পাওয়া গেছে। এ দু’দিনের নমুনা থেকে নতুন করে ৭ জনের শরীরে করোনা সংক্রমণ ফলাফল এসেছে। এদের মধ্যে গাড়াগ্রাম ইউনিয়নে একই পরিবারে ৩ জন, বড়ভিটা ইউনিয়নে ১ জন, মাগুড়া ইউনিয়নে ১ জন, বাহাগিলী ইউনিয়নে ২ জন। এছাড়া পূর্বের করোনা শনাক্ত ১ জন রোগীর ফলোআপ ফলাফলও পজেটিভ এসেছে। এনিয়ে উপজেলায় করোনা সংক্রমণ রোগী সংখ্যা দাঁড়ালো ২৫ জন। নতুন আক্রান্ত ৭ জনকে আইসোলেশনে নেয়ার প্রস্তুতি চলছে। এছাড়া তাদের বাড়ীসহ পার্শ্ববর্তী বাড়ি লগডাউন করার প্রক্রিয়াও চলছে।
কিশোরগঞ্জ থানার অফিসার ইনচার্জ এম হারুন অর রশিদ জানান- নতুন করোনা শনাক্ত রোগীদের বাড়ী লকডাইনের প্রস্তুতি চলছে।

নওগাঁয় আমবাগানে কিশোরীকে ডেকে নিয়ে ধর্ষণের চেষ্টা

নওগাঁয় আমবাগানে কিশোরীকে ডেকে নিয়ে ধর্ষণের চেষ্টা





মোঃ ফিরোজ হোসাইন
রাজশাহী ব্যুরো

নওগাঁর মান্দা উপজেলার মৈনম ইউনিয়নের বর্দপুর আদর্শ গ্রামে ১২ বছরের এক কিশোরীকে ধর্ষণের চেষ্টা করা হয়েছে বলে অভিযোগ পাওয়া গেছে। এ ঘটনায় লফিরউদ্দীন সেতু (৩০) নামে এক যুবককে আসামি করে ভিকটিমের পিতা মুকুল চন্দ্র বাদী হয়ে বুধবার বিকেলে মান্দা থানায় নারী ও শিশু নির্যাতন দমন আইনে একটি মামলা দায়ের করেন।

মান্দা থানার অফিসার ইনচার্জ মোঃ মোজাফফর হোসেন মামলা দায়েরের কথা নিশ্চিত করে বলেন, ওই গ্রামের খয়বর আলীর ছেলে ও মৈনম ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান ইয়াসিন আলী রাজার শ্যালক লফিরউদ্দিন সেতু মঙ্গলবার সন্ধ্যা ৬টার দিকে একই গ্রামের মুকুল চন্দ্রের মেয়ে ৫ম শ্রেণির ছাত্রী ওই কিশোরীকে পাশের আম বাগানে ডেকে নিয়ে পরনের জামা-কাপড় ছিড়ে ধর্ষণের চেষ্টা করে। এসময় ওই কিশোরীর আর্ত-চিৎকারে গ্রামের লোকজন ছুটে আসলে সেতু পালিয়ে যায়। 

ওসি আরও জানান, মামলা দায়েরের পর থেকে আসামি সেতু পলাতক রয়েছে, তাকে গ্রেফতারের চেষ্টা চলছে।

চৌগাছার বিতর্কিত এস আই কারাগারে!

চৌগাছার বিতর্কিত এস আই কারাগারে!





নিউজ ডেস্ক  : গাঁজাসহ আটক চৌগাছা থানা পুলিশের এসআই হাসানুজ্জামানকে একদিনের রিমান্ড শেষে জেলহাজাতে প্রেরণ করা হয়েছে। বুধবার মামলার তদন্তকারী কর্মকর্তা যশোরের জুডিশিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট আদালতে হাজির করলে বিচারক মঞ্জুরুল ইসলাম আসামি হাসানুজ্জামানকে কারাগারে পাঠানোর নির্দেশ দেন।

আদালত সূত্রে জানা গেছে, ১৫ জুন ৩ কেজি গাঁজাসহ দুইজনকে আটক করে কেশবপুরের ভাল্লুকঘর ক্যাম্প পুলিশ।

হাসানুজ্জামান সাতক্ষীরার কলারোয়ার উপজেলার সিংঙ্গা এলাকার মৃত মোফাজ্জেল সরকারের ছেলে। তার সহযোগী হিসেবে আটক হয় কেশবপুরের চাঁদড়া গ্রামের আবুল হোসেনের ছেলে নাজমুল ইসলাম। এ সময় মণিরামপুর উপজেলার পারখাজুরা এলাকার মশিয়ার রহমানের ছেলে শহিদ পালিয়ে যায়। মঙ্গলবার উল্লিখিত তিনজনের বিরুদ্ধে মামলা হবার পর হাসানুজ্জামানকে আদালতে সোপর্দ করে ৭ দিনের রিমান্ড আবেদন করলে ১দিনের রিমান্ড মঞ্জুর করা হয়।

মাধবপুরে ইট সলিং ভেঙ্গে বৃষ্টির পানিতে কাঁদায় ধর্মঘর বাজারের বেহাল দশা,

মাধবপুরে ইট সলিং ভেঙ্গে বৃষ্টির পানিতে কাঁদায় ধর্মঘর বাজারের বেহাল দশা,




লিটন পাঠান হবিগঞ্জ জেলা প্রতিনিধি

হবিগঞ্জের মাধবপুর উপজেলার ১ নং ধর্মঘর ইউনিয়নের ধর্মঘর মধ্য বাজারের বেহাল দশা দেখার যেন কেউ নেই বিগত ১২ বছরে ও এই বাজারটিতে উন্নয়নের ছোঁয়া লাগেনি পূর্বের ইট সলিং ভেঙ্গে একটু বৃষ্টি হলে কাঁদা জমে জনসাধারণের চলাফেরার ব্যাঘাত ঘটায় বিশেষ করে শুক্রবার এবং মঙ্গলবার সাপ্তাহিক কাঁচাবাজারের দিন সীমিত জায়গা থাকায় জনসাধারণ চলাফেরাও,

ব্যবসায়ী পণ্য নিয়ে বসতে অনেক, সমস্যার সম্মুখীন হতে হয়। ইউনিয়নের বিভিন্ন এলাকার  জনসাধারণ সাপ্তাহিক বাজার বাড়ে কাঁচাবাজার ও নিত্যপণ্যের জিনিস খরিদ করতে এই বাজারে ভিড় জমায়। বুধবার (১৭-জুন) দুপুরে সরেজমিনে গিয়ে দেখা যায়, বাজারটির প্রায় জায়গায় পানি ও কাঁদা জমে রয়েছে এবং বাজারের ৫০ ভাগ মাটি বৃষ্টির,

পানিতে ধুয়ে গেছে ধর্মঘর দীঘিতে এতে, করে বাজারটি উঁচু-নিচু ডাউন এ পরিণত হয়েছে। অনেক ধর্মঘর বাজারের ব্যবসায়ীরা জানায়, অনেক দিন যাবত বাজারটিতে কোন বাজেটের কাজ করানো হয় না। শুনেছি ৪০ দিনের কর্মসূচি  কাজ ইউনিয়নে করানো হয় তারও আওতায় এখন পর্যন্ত পড়েনি,

বাজারটি একটু বৃষ্টি হলেই বাজারের, প্রায় সব জায়গাতে পানি এবং কাঁদায় ভরে যায়। এতে করে আমাদের মত ব্যবসায়ী এবং পণ্য ক্ষয় করতে আসা জনসাধারণ চলাফেরা করতে অনেক ব্যাঘাত ঘটে ধর্মঘর বাজারের ইজারাদার মোহাম্মদ আনু মিয়া বলেন এ বিষয়ে,

স্থানীয় চেয়ারম্যান শামসুল ইসলাম, কামাল কে আমি বারবার বাজারটিতে মাটি ফেলার জন্য বলেছি এবং পানি এবং কাঁদা জমে থাকে জানালে কোন সৎ উত্তর পাইনি। স্থানীয় জনসাধারণ ও বাজারের ব্যবসায়ীদের দাবি অতি দ্রুত,

ধর্মঘর বাজারটিতে গর্ত স্থানে মাটি ফেলে, আবার নতুন ইট সলিং করানো হক এতে কিছুটা হলে ও জনদুর্ভোগ থেকে রক্ষা পাবে এলাকাবাসী।

নওগাঁর আত্রাইয়ে অজ্ঞাত মহিলার লাশ উদ্ধার!

নওগাঁর আত্রাইয়ে অজ্ঞাত মহিলার লাশ উদ্ধার!



মোঃ ফিরোজ হোসাইন
রাজশাহী ব্যুরো

 নওগাঁর আত্রাইয়ে অজ্ঞাত এক মহিলার (২২) লাশ উদ্ধার করেছে থানা পুলিশ। 
বুধবার সন্ধ্যায় থানা পুলিশ উপজেলার দাড়িয়াগাঁথী এলাকায় রাস্তার পাশে থেকে লাশটি উদ্ধার করে।
আত্রাই থানার অফিসার ইনচার্জ (ওসি) মোসলিম উদ্দিন জানান, স্থানীয়রা লাশটি দেখে পুলিশকে খবর দিলে ওই অজ্ঞাত মহিলার লাশ উদ্ধার করে থানায় নিয়ে আসা হয়। তবে এখনও তার পরিচয় পাওয়া যায়নি। তার পরিচয় ও মৃত্যুর কারণ জানার চেষ্টা করা হচ্ছে। ময়না তদন্তের রিপোর্ট হাতে পেলে মৃত্যুর কারণ জানা যাবে।

অন-টাইম চায়ের কাপে চা পান, না বিষ পান?

অন-টাইম চায়ের কাপে চা পান, না বিষ পান?




মোঃ ইমদাদুল হক: যশোর,সদর: সকালে চায়ের কাপে চুমুক না দিলেই যেন নয়। এরকম অভ্যাস প্রায় বাংলাদেশের শহর থেকে শুরু করে গ্রাম বাংলার প্রতিটি অঞ্চালেই দেখা যায়। কিন্তু এরকম অভ্যাস করোনা প্রাক্কালে মানুষের অনেকটা উপকার করলেও অন-টাইম গ্লাসে চা পানের কারণে চা পান করছি না বিষ পান করছি তা এখন ভাবার সময় এসছে। অন-টাইম চায়ের কাপে চা পানের কারণে শারীরিক ক্ষতির পাশাপাশি  পরিত্যক্ত চায়ের কাপে পরিবেশের মারাত্বক ক্ষতি করছে। বাংলাদেশে মার্চ মাস থেকে করোনা ভাইরাসের প্রকোপ বেড়ে যাওয়ার সাথে চা প্রিয় মানুষের কাছে অন-টাইম গ্লাসের কদর অনেকটা বেড়ে গেছে। অনেকে অন-টা্ইম গ্লাসে চা পান নিরাপদ মনে করছে। যার কারণে চা পানে অন-টাইম গ্লাস বেশি ব্যবহৃত হচ্ছে। যেহেতু অন-টাইম গ্লাস একবার ব্যবহার করা হয়, সেহেতু সেটা ব্যবহার করার পর যেখানে সেখানে ফেলে দেওয়ার কারণে পরিবেশের মারাত্বক ক্ষতি হচ্ছে। মার্চের মাঝামাঝিতে ব্লুমবার্গএনইএফ-র এক গবেষণা প্রতিবেদনে বলা হয়, করোনা ভাইরাসের কারণে জীবাণুমুক্ত খাবার নিয়ে মানুষের মধ্যে যে নতুন উদ্বেগ দেখা দিয়েছে তাতে খাবার প্লাস্টিকে মোড়ানোর প্রবণতা বেড়ে যেতে পারে৷ কারণ, ভাইরাসের বিরুদ্ধে সুরক্ষার জন্য স্বাস্থ্যকর্মীরা যেসব সুরক্ষা উপকরণ ব্যবহার করছেন সেগুলো সব একবার ব্যবহার যোগ্য প্লাস্টিক৷ কাজেই খাবারের ক্ষেত্রেও মানুষ এই পথ অনুসরণ করতে পারে৷  যদিও ‘প্লাস্টিক কোনো কিছুকে পরিষ্কার ও নিরাপদ রাখতে পারে না’ বলে মনে করেন গ্রিনপিস ইউএসএ-র গবেষক আইভি স্লেগালের৷  অন-টাইম গ্লাসগুলো সাধারণত তৈরী করা হয় প্লাস্টিক দিয়ে। প্লাস্টিকের ব্যবহৃত জিনিসপত্র শরীরের জন্য মারাত্বক ক্ষতি করে।  এক সমীক্ষায় চায়ের প্লাস্টিক কাপ থেকে মূখে ও লিভারে ক্যানসার ছড়ানোর কথা জানিয়েছেন ‘আমেরিকান্ ইন্টারন্যাশনাল স্কুল অব মেডিসিন’ এর মূখ্য গবেষকরা। তাঁদের মতে, এসব চায়ের কাপ মূলত মাইক্রোপ্লাস্টিক দিয়ে তৈরী হয়। এতে থাকা ট্রক্সিক পদার্থ বিসফেনল-এ ক্যানসারের অন্যতম কারণ। বিশেষ করে গরম পানীয়ের সংস্পর্শে এলে তা সহেজেই পানীয়ের সঙ্গে মিশে যায়। পুরষদের শ্রক্রানু কমিয়ে দেওয়ার ক্ষেত্রেও অন্যতম দায়ী এ বিসসনেল-এ।  প্লাস্টিকের কাপ তৈরীতে ব্যবহৃত পলিভিনিইল ক্লোরাইড (পিভিসি) কে নরম করা হয় থ্যালেট ব্যবহার করে যা শরীরের পক্ষে মারাত্বক ক্ষতি করতে পারে। যার প্রভাবে শ্বাসকষ্ট, স্তন ক্যান্সারসহ বিভিন্ন রোগ দেখা দেয়। তাই বিশেজ্ঞরা এখনই এই প্লাস্টিকের অন-টাইম গ্লাসের ব্যবহার বন্ধ করার জন্য মতামত প্রদান করেছেন। 

করোনা ভাইরাস কে বৃদ্ধাঙ্গুলি দেখিয়ে নাগরপুর বাজারে সাপ্তাহিক হাট।

করোনা ভাইরাস কে বৃদ্ধাঙ্গুলি দেখিয়ে নাগরপুর বাজারে সাপ্তাহিক হাট।




হাসান সাদী, নাগরপুর(টাঙ্গাইল) প্রতিনিধিঃ কোভিট ১৯ করোনা ভাইরাস থেকে মানুষকে বাঁচানোর জন্য যখন সারা বিশ্বে লকডাউন সহ সামাজিক দূরত্ব নিশ্চিত করার লক্ষে সরকার অফিস আদালত, শিক্ষা প্রতিস্ঠান, ধর্মীয় উপসনালয় সল্প পরিসরে খোলা রেখেছেন ঠিক সেই মুহুর্তে নাগরপুর বাজারে চলছে সাপ্তাহিক হাট। 

আজ ১৭ই জুন ২০২০ রোজ বুধবার দৈনিক কপোতাক্ষ নিউজ সরজমিনে গিয়ে দেখতে পান এই মহামারি করোনার মধ্যে নাগরপুর বাজারে মানুষের উপচে পড়া ভিড়, এখানে কেউ সামাজিক দুরত্ব ও স্বাস্থবিধি মানছে না, এতে করে নাগরপুর এই মহামারি করোনা ভাইরাস ছড়িয়ে পরার আশঙ্কা করছে স্থানীয় সচেতন জনগন।

২০জন দুস্থ ও অসহায় মহিলার মাঝে সেলাই মেশিন বিতরণ

২০জন দুস্থ ও অসহায় মহিলার মাঝে সেলাই মেশিন বিতরণ




মিরসরাই প্রতিনিধি
মিরসরাইয়ে অসহায় ও দুস্থ মহিলাদের মাঝে সেলাই মেশিন বিতরণ করা হয়েছে। ( ১৭ জুন) সকালে উপজেলার ১১ নং মঘাদিয়া ইউনিয়ন পরিষদের উদ্যোগে ইউনিয়ন মিলনায়তনে এসব সেলাই মেশিন বিতরণ করা হয়। অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথির বক্তব্য রাখেন মিরসরাই উপজেলা আওয়ামীলীগের সভাপতি জাহাঙ্গীর কবির চৌধুরী। ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান জাহাঙ্গীর হোসাইন মাষ্টারের সভাপতিত্বে ও ইউপি সদস্য নাসির উদ্দিন মিলনের সঞ্চালনায় বিশেষ অতিথির বক্তব্য রাখেন মিরসরাই উপজেলা আওয়ামীলীগের সাধারণ সম্পাদক একএম জাহাঙ্গীর ভূঁইয়া, সহ-সভাপতি মিহির কান্তি নাথ। সভায় আরো বক্তব্য রাখেন উপজেলা আওয়ামীলীগের সদস্য নুরুল গনি, ইউনিয়ন আওয়ামীলীগের সভাপতি তোফায়েল উল্ল্যা চৌধুরী নাজমুল, সাধারণ সম্পাদক মহিউদ্দিন চৌধুরী, উপজেলা আওয়ামীলীগের তথ্য ও গবেষনা সম্পাদক আরিফ মাঈনুদ্দীন, শিক্ষা ও মানব সম্পদ সম্পাদক সাইফুল ইসলাম ভূঁইয়া, মঘাদিয়া ইউনিয়ন মুক্তিযোদ্ধা কমান্ডার হাজ্বী নুর হোসেন, ইউনিয়ন আওয়ামীলীগের সাবেক সহ-সভাপতি মফিজ মাষ্টার, আবদুল্লাহ আল হালিম মাষ্টার, উপজেলা কৃষকলীগের সাংগঠনিক সম্পাদক আবু মোস্তফা কামাল চৌধুরী লিটন, ইউনিয়ন যুবলীগের সাধারণ সম্পাদক নুরুল আবছার, মাষ্টার তুষার প্রমুখ। এসময় ইউনিয়ন পরিষদের সদস্য, আওয়ামীলীগ, যুবলীগ ছাত্রলীগ নেতৃবন্দ উপস্থিত ছিলেন। 

আলোচনা সভা শেষে ইউনিয়নের ২০ জন অসহায় ও দুস্থ মহিলার মাঝে সেলাই মেশিন তুলে দেন অতিথিবৃন্দ।

করোনা উপসর্গ নিয়ে চুয়াডাঙ্গায় একজনের মৃত্যু

করোনা উপসর্গ নিয়ে চুয়াডাঙ্গায় একজনের মৃত্যু





কাউসার আলী
চুয়াডাঙ্গা প্রতিনিধি

করোনা উপসর্গ নিয়ে চুয়াডাঙ্গা সদর হাসপাতালে চিকিৎসাধীন অবস্থায় এক বৃদ্ধের (৬০) মৃত্যু হয়েছে।আজ বেলা ১২ টার দিকে চুয়াডাঙ্গা সদর হাসপাতালের আইসোলেশন ওয়ার্ডে তার মৃত্যু হয়।তিনি দামুড়হুদা উপজেলার দর্শনা বাসস্ট্যান্ড পাড়ার বাসিন্দা।
সদর হাসপাতালের আরএমও ডাক্তার শামীম কবির জানান তাঁকে মঙ্গলবার(১৬ জুন) সকালে হাসপাতালে ভর্তি করা হয় এবং করোনা আইসোলেশন ওয়ার্ডে রেখে তাঁকে চিকিৎসা দেওয়া হচ্ছিল।কিন্তু আজ সকাল থেকে তাঁর অবস্থার অবনতি হতে থাকে এবং বেলা ১২ টার দিকে তিনি মারা যান।
এ নিয়ে চুয়াডাঙ্গা জেলায় মোট আক্রান্ত ১৪৪ জনের মধ্যে মারা গেলেন ২ জন এবং সুস্থ হয়ে বাড়ি ফিরেছেন ৮৯ জন। বাকিরা হাসপাতালে এবং বাড়িতে চিকিৎসাধীন রয়েছেন।
বাড়িতে থাকুন,নিরাপদে থাকুন।

নওগাঁয় বিএসএফের নির্যাতনে বাংলাদেশি নিহত

নওগাঁয় বিএসএফের নির্যাতনে বাংলাদেশি  নিহত


 

 রাজশাহী ব্যুরো
নওগাঁর সাপাহারের আদাতলা সীমান্তে ভারতীয় সীমান্তরক্ষী বাহিনীর (বিএসএফ) নির্যাতনে আব্দুল বারী (৪৫) নামে এক বাংলাদেশির মৃত্যু হয়েছে বলে অভিযোগ উঠেছে। বুধবার সকালে সাপাহার আদাতলা সীমান্ত থেকে নিহতের মরদেহ উদ্ধার করে পুলিশ।

আব্দুল বারী সাপাহার উপজেলার দক্ষিণ পাতাড়ি গ্রামের আবু বক্করের ছেলে।
স্থানীয় সূত্রে জানা যায়, মঙ্গলবার রাতে আব্দুল বারীসহ একদল চোরাকারবারি পূর্নভবা নদীর আদাতলার সীমান্ত দিয়ে ভারতে প্রবেশের চেষ্টা করে। ওই সময় বিএসএফ সদস্যরা বুঝতে পেরে তাদেরকে তাড়া করেন। অন্যরা পালিয়ে আসতে পারলেও আব্দুল বারী ফিরতে পারেননি। তাকে ধরে নির্যাতনের পর পুর্নভবা নদীর তীরে তারকাটার পাশে বাংলাদেশের সীমানায় ফেলে দেয় বিএসএফ। বুধবার ভোরে তার মরদেহ কাটাতারের বেড়ার পাশে পড়ে থাকতে দেখে থানায় খবর দেয় স্থানীয়রা।

সাপাহার থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) আব্দুল হাই বিষয়টি নিশ্চিত করে বলেন, বুধবার সকাল ৮টার দিকে নিহতের মরদেহ উদ্ধার করে ময়নাতদন্তের জন্য নওগাঁ সদর হাসপাতালে পাঠানো হয়েছে।

এর আগে, গত ১৫ জুন নওগাঁর পোরশা উপজেলার নীতপুর সীমান্তে ভারতীয় সীমান্তরক্ষী বাহিনীর (বিএসএফ) আগ্রাবাদ ক্যাম্পের বিএসএফ সদস্যদের গুলিতে সুভাস রায় নামে এক বাংলাদেশি নিহত হন। তার মরদেহ এখন পর্যন্ত ফেরত দেয়নি বিএসএফ।

আশাশুনিতে শীর্ষ সন্ত্রাসী লাকি বাহিনীর হামলায় ইউপির কার্যালয় ভাঙচুরসহ আহত-৫

আশাশুনিতে শীর্ষ সন্ত্রাসী লাকি বাহিনীর হামলায় ইউপির কার্যালয় ভাঙচুরসহ আহত-৫




আহসান উল্লাহ বাবলু উপজেলা প্রতিনিধি:
আশাশুনিতে শীর্ষ সন্ত্রাসী আলাউদ্দীন (লাকি) বাহিনীর হামলায় ইউপি'র অস্থায়ী কার্যালয় ভাঙচুর এবং আহত হয়েছেন ইউপি চেয়ারম্যানসহ পাঁচজন। বুধবার সকাল ৮টায় উপজেলার শ্রীউলা ইউনিয়নের মহীষকুড় মৎস্য সেটের সামনে ইউনিয়ন পরিষদের অস্থায়ী কার্যালয় এই ঘটনাটি ঘটে। শ্রীউলা ইউপি চেয়ারম্যান ও উপজেলা আওয়ামীলীগের যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক আবু হেনা সাকিল জানান, আলাউদ্দীন (লাকি) তার বাহিনীর হাসান, ফারুক, রাশেদ, সাহেদ, রাসেল, ইয়াসিন, হামিদসহ আরো ১৫ থেকে ২০ জন সন্ত্রাসীরা লোহার রড, শাবল ও চাইনিজ কুড়াল,রামদা দিয়ে আমার ও আমার লোকজনের উপর হামলা করে এবং ইউনিয়ন পরিষদের অস্থায়ী কার্যালয় ভাংচুর। তিনি আরো জানান, ঘূর্ণিঝড় আম্ফানের তান্ডবে ভেড়িবাঁধ ভাঙ্গন কবলিত এলাকার অসহায়দের মধ্যে মাননীয় প্রধানমন্ত্রী জননেত্রী শেখ হাসিনার দেওয়া ত্রাণ সামগ্রী ও নগদ  টাকা চাঁদা চাইলে আমি তাদেরকে বলি এটা গরীব অসহায়দের জন্য সরকার দিয়েছে যারা প্রকৃত পাওয়ার যোগ্য তারা পাবে আমি কোন চাঁদা দিতে পারব না এ কথা বলার সাথে সাথে ওই সন্ত্রাসী বাহিনীরা লাকীর নেতৃত্বে আমার অফিসে এসে হামলা চালায়। স্থানীয় একাধিক সূত্রে জানা গেছে, এই কুখ্যাত সন্ত্রাসী আলাউদ্দীন লাকি বাহিনীর বিরুদ্ধে এলাকায় সন্ত্রাসী, চাঁদাবাজি, মৎস্য-ঘের লুটপাট, বাড়ি ভাঙচুরসহ চুরি করার একাধিক অভিযোগ রয়েছে। স্থানীয়রা আরো জানান, গত কয়েক দিন আগে প্রতাপনগর ইউনিয়নের কোলা ভেড়িবাঁধ ভাঙ্গনকবলিত এলাকায় মাছধরা কেন্দ্রিক চাঁদা চাওয়ায়  ইউপি চেয়ারম্যান আবু হেনা সাকিলসহ সাধারণ জনগণের সাথে শীর্ষসন্ত্রাসী লাকি বাহিনীদের বাকবিতণ্ডা ঘটে। আলাউদ্দিন লাকি এক সময়  করে চুরি করে বেড়াতেন সেখান থেকে চোরের  সরদার এবং পরবর্তীতে অস্ত্রশস্ত্রে সজ্জিত হয়ে ডাকাত বাহিনী গড়ে তোলে এলাকায় ত্রাস ও নিজের সন্ত্রাসের রাজত্ব সৃষ্টি করে। ইউপি চেয়ারম্যান আবু হেনা সাকিল তার চাঁদাবাজি ও সন্ত্রাসী কার্যকলাপের প্রতিবাদ করলে এরই ধারাবাহিকতায় ইউনিয়ন পরিষদের অস্থায়ী কার্যালয় ভাঙচুর করাসহ মারপিট করেন। এ ঘটনায় আহত হয়েছেন শ্রীউলা ইউনিয়নের রশিদ মোড়লের পুত্র আমিনুল ইসলাম, সুরমান আলী গাজীর পুত্র রহিস উদ্দিন গাজী, সোবহান গাজীর পুত্র রুস্তম গাজী, ইমান আলী মোড়লের পুত্র রহিম মোড়ল, মগরোব মোড়লের পুত্র গ্রাম পুলিশ কহিনুর মোড়ল, তালেব আলী সরদারের পুত্র মোবারক সরদার, ইউপি চেয়ারম্যানের ড্রাইভার আব্দুল্লাহ আল মামুন, রশিদ মোড়লের পুত্র বিল্লাল মোড়ল, অবেদ আলীর পুত্র জাহাঙ্গীর গাজী, গফুর গাজীর পুত্র শফিকুল গাজী। আহত অনেকের আশাশুনি স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ভর্তি করা হয়েছে। এবং কয়েকজনের সাতক্ষীরা সদর হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে। আহত রুস্তম গাজীর অবস্থা আশঙ্কাজনক হওয়ায় তাকে সাতক্ষীরা সদর হাসপাতাল থেকে খুলনায় রেফার করা হয়েছে । আশাশুনি থানার অফিসার ইনচার্জ মোহাম্মদ গোলাম কবির ঘটনার সত্যতা স্বীকার করে জানান, বর্তমান পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আছে আর যদি কেউ আইন শৃঙ্খলার অবনতি ঘটানোর চেষ্টা করে তাহলে তাদের বিরুদ্ধে আইনানুগ ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে। হামলাকারী যেই হোক তাকে আইনের আওতায় আনা হবে। এ রিপোর্ট লেখা পর্যন্ত মামলার প্রস্তুতি চলছিল।

কুড়িপাড়া কলেজের উদ্যোগে মোহাম্মাদ নাসিমের আত্তার মাগফিরাত কামনায় দোয়া

কুড়িপাড়া কলেজের উদ্যোগে মোহাম্মাদ নাসিমের আত্তার মাগফিরাত কামনায় দোয়া
  




মাসুদ রানা সিরাজগঞ্জ জেলা প্রতনিধিঃ  কুড়িপাড়া কলেজের উদ্যেগে মোহাম্মদ নাসিম এর আত্তার মাগফিরাত কামনা ও দোয়ার মাহফিল করেন। সাববেক স্বাস্থ্যমন্ত্রী ও বাংলাদেশ আ.লীগের প্রেসিডিয়াম সদস্য মোহাম্মদ নাসিমের মৃত্যতে তার আত্তার মাগফিরাত কামনায় কুড়িপাড়া কলেজের উদ্যেগে বুধবার বাদ জহর দোয়ার মাহফিল ওতবারক বিতারণের আয়োজন করেন অত্র কলেজের অধ্যক্ষ মোঃ কামরুজ্জামান এর সভ্পত্তিতে
দোয়ার মাহফিলের মোনাজাত করান মাওলানা মোঃ মুনসুর আলী সাহেব, পরিচালনা করেন অত্র কলেজের প্রভাষক আনোয়ারুল আজম, এ সময় উপস্থিত ছিলেন, জেলা পরিষদের সদস্য আলহাজ্জ্ব গোলাম রব্বানী তালুকদার,গান্ধাইল ইউপি চেয়ারমেন আশরাফুল আলম, রতনকান্দি ইউপি চেয়ারম্যান আনোয়ার হোসেন, ইউনিয়ন আওয়ামীলীগের ভারপ্রাপ্ত সভাপতি সাইদুল ইসলাম জুড়ান, ইউনিয়ন আওয়ামীলীগের সাংগঠনিক সম্পাদক আলী হোসেন, যুগ্ন সাধারণ সম্পাদক মোঃ বিপ্লব হোসেন, ইউনিয়ন যুবলীগের সভাপতি মোঃ জাহাঙ্গীর আলম, সাধারণ সম্পদক বুলবুল আহম্মেদ ভুট্টু, আওয়ামী সেচ্ছাসেবক লীগের ভারপ্রাপ্ত সভাপতি সোহেল রানা, যুগ্নসাধারণ সম্পাদক রোকনুজ্জামান, ইউনিয়ন ছাত্রলীগের সভাপতি আব্দুল আলীম খাঁন, ইউনিয়ন ছাত্রলীগের সাধারণ সম্পদক জাকিরুল ইসলাম বাবু সহ সকল অঙ্গ সংগঠনের নেতৃী বৃন্দু ও জনগনের এক অংশ।তবারক পরিবেশন করেন আমিনুল ইসলাম( টুরু)এসময় তারা বলেন আমাদের উত্তর বঙ্গের অভিবাগ হারালাম আমরা তার আত্তার মাগফিরাত কামনা করি যেন আল্লা তাকে বেহস্তনসিব করেন।তিনি মারা গেলে ও সে থাকবে আমাদের মাঝে চির অমোর হয়ে।

কে এই বৃদ্ধ?

কে এই বৃদ্ধ?




সম্রাট  হোসেন,শৈলকুপা উপজেলা প্রতিনিধিঃ

ঝিনাইদহের শৈলকুপা ভাটই  বাজারের দক্ষিণ পাশে, এই বৃষ্টি ভেজা আবহাওয়ায় লোকটি সপ্তাহখানেক হলো এখানে এভাবেই শুয়ে আছে, প্রতিদিন শত শত গাড়ি, মানুষ এই দিক দিয়েই মাওয়া আসা করে কারো নজরে বিষয়টি আসছে না। অনেক খুঁজেছি লোকটির নাম ঠিকানা পাইনি,প্রশাসনের দৃষ্টি আকর্ষণ করছি সহযোগিতার জন্য।

ঝিনাইদহে গোয়েন্দা পুলিশ ৫ কেজি ৭’শ গ্রাম রুপা ও ২২ লাখ টাকাসহ ২ জন আটক

ঝিনাইদহে গোয়েন্দা পুলিশ ৫ কেজি ৭’শ গ্রাম রুপা ও ২২ লাখ টাকাসহ ২ জন আটক





ঝিনাইদহ জেলা প্রতিনিধিঃ




ঝিনাইদহ সদর উপজেলার ভেটেরিনারী কলেজের সামনে থেকে পাচারের সময় ৫ কেজি ৭’শ গ্রাম রুপা ও ২২ লাখ টাকাসহ ২ জন আটক গোয়েন্দা পুলিশ।
বুধবার দুপুরে সদর উপজেলার হলিধানী এলাকা থেকে তাদের আটক করা হয়। আটককৃতরা হলো-মানিকগঞ্জ উপজেলার সিংগাইল উপজেলার গোবিন্দল গ্রামের মৃত রাজা মিয়ার ছেলে তোফাজ্জেল হোসেন (৪০) ও একই গ্রামের আনোয়ার হোসেনের ছেলে আমিনুল ইসলাম (২০)।
ঝিনাইদহ ডিবি ওসি আনোয়ার হোসেন জানান, গোপন সংবাদের ভিত্তিতে তারা জানতে পারে মেহেরপুর থেকে ঝিনাইদহ হয়ে রুপা ঢাকায় পাচার হচ্ছে। এমন সংবাদের ভিত্তিতে ডিবি ইন্সপেক্টর নজরুল ইসলাম, এস আই আব্দুল আলিম, এস আই সেলিম রেজা, এএসআই আলিম সঙ্গীয় ফোর্স নিয়ে হলিধানী এলাকার ভেটেরিনারী কলেজের সামনে চেকপোস্ট বসায় পুলিশ। সন্দেহ হলে একটি মোটর সাইকেলের গতিরোধ করে মোটর সাইকেলের ২ আরোহীকে তল্লাসী করে। এসময় তাদের কাছ থেকে ৫ কেজি ৭’শ গ্রাম রুপা ও ২২ লাখ নগদ টাকা উদ্ধার করা হয়।

বাণিজ্য মন্ত্রী টিপু মুন্সী করোনা ভাইরাসে আক্রান্ত!

বাণিজ্য মন্ত্রী টিপু মুন্সী  করোনা ভাইরাসে আক্রান্ত!
  



স্টাফ রিপোর্টারঃ

বাণিজ্য মন্ত্রী টিপু মুন্সী মরণ ঘাতি করোনা ভাইরাসে আক্রান্ত হয়েছেন । তিনি এখন নিজ  বাসায়ই আইসোলেশনে আছেন । এই তথ্য নিশ্চিত করেছেন মন্ত্রী মহোদয়ের এপিএস। মন্ত্রী মহোদয়ের  জন্য তার পরিবারের পক্ষ থেকে  দেশবাসীর কাছে দোয়া চাওয়া হয়েছে। 

অনলাইন স্কুলে দৌলতখানের হামিদ পারভেজ স্যারের প্রশংসনীয় ভূমিকা

অনলাইন স্কুলে দৌলতখানের হামিদ পারভেজ স্যারের প্রশংসনীয়  ভূমিকা





মোঃ আওলাদ হোসেন 
জেলা প্রতিনিধি ভোলা,দৌলতখান। 

পুরো বিশ্ব যখন করোনা মহামারীতে কাঁপছে, এমন পরিস্থিতিতে  অনেক শহর ও দেশ লকডাউনে সময় অতিবাহিত করছে।
বাংলাদেশ ও এর ব্যতিক্রম  নয়। অন্যান্য সব কিছুর মত ঝুঁকির মধ্যে রয়েছে শিক্ষা প্রতিষ্ঠানও। তাই গণপ্রজাতন্ত্রী বাংলাদেশ সরকারের মাননীয় প্রধানমন্ত্রী মহোদয়ের নির্দেশে সকল শিক্ষা প্রতিষ্ঠান সাধারন ছুটি ঘোষনা করা হয়েছে ,যেন শিক্ষার্থীরা বাসায় সুস্থ ও নিরাপদ থাকে।

এরই মধ্যে বরাবরের মতো প্রশংসায় ভাসছে বাংলাদেশ সরকারের বিভিন্ন কার্যকরী পদক্ষেপ। বাংলাদেশ সরকারের প্রশংসনীয়  সব পদক্ষেপ গুলোর মধ্যে অন্যতম একটি "সংসদ টিভি"। এই  টেলিভিশনের মাধ্যমে বিষয় ভিত্তিক দক্ষ ও মেধাবী শিক্ষকগন দিয়ে করাচ্ছেন ভিডিও ক্লাস। যেন শিক্ষার্থীরা করোনা কালীন সাধারণ ছুটিতে অলস সময় না কাটিয়ে তাদের ক্ষতি  কিছুটা হলেও পুষিয়ে নিতে পারে।
এদেশের মেধাবী শিক্ষকরা শুধু সংসদ টেলিভিশনেই শিক্ষার্থীদের কল্যাণে কাজ করছে না,তাঁরা ব্যক্তিগত  ভাবে, বিদ্যালয়ের নামে, জেলা উপজেলার নামে বিভিন্ন অনলাইন স্কুল তৈরী করে শিক্ষার্থীদের যেন উপকারে আসে সেই জন্য নানা কর্মসূচি গ্রহণ করেছেন।

এর মধ্যে একটি হলো বরিশাল বিভাগের সেরা শিক্ষকদের সমন্বয়ে "বরিশাল অনলাইন স্কুল"। সবচেয়ে গুরুত্বপূর্ণ বিষয়টি হলো,ভোলা জেলার অন্যতম একটি উপজেলা হচ্ছে দৌলতখান। এই উপজেলাতে রয়েছে বেশ কতগুলো সরকারী প্রাথমিক বিদ্যালয়,বেসরকারী নিম্নমাধ্যমিক, মাধ্যমিক, উচ্চমাধ্যমিক বিদ্যালয় ও মাদরাসা। আছে সরকারি দুটি মাধ্যমিক বিদ্যালয়।এসকল প্রতিষ্ঠানে রয়েছে অনেক দক্ষ ও অভিজ্ঞ শিক্ষক মন্ডলী।কিন্তু অত্যন্ত পরিতাপের বিষয়, যখন বিভিন্ন উপজেলার শিক্ষকদের সমন্বয়ে চলছে ভিডিও অনলাইন ক্লাস, তখন দৌলতখানে আমরা কোন শিক্ষকের তেমন কোন ভূমিকা দেখি নাই।
তবে অত্যন্ত  প্রশংসনীয় ভূমিকা দেখা গেছে দৌলতখান সরকারি  উচ্চ বিদ্যালয়ের সহকারী শিক্ষক হামিদ উল্লাহ (হামিদ পারভেজ) স্যারের।

জানা যায়, তিনি ৩৪তম বিসিএস ননক্যাডার হিসেবে দৌলতখান সরকারি উচ্চ বিদ্যালয়ে ইংরেজি বিষয়ের শিক্ষক হিসেবে যোগদান করেছেন। এর আগে তিনি সোনালী ব্যাংকের  অফিসার ছিলেন। জাতী গঠনের কারিগর হিসেবে খ্যাত শিক্ষকতা পেশার প্রতি সম্মান ও ভালোবাসার খাতিরে চলে আসেন এই পেশায়।
শিক্ষকতা পেশার প্রতি তার প্রবল ভালোবাসা তাঁকে অনেক কিছু ত্যাগ করতে বাধ্য করেছে। দৌলতখান সরকারি উচ্চ বিদ্যালয়ে যোগদান করার পর দৌলতখানের মানুষের অনেক ভালোবাসা ও জনপ্রিয়তা তিনি পেয়েছে অল্পকিছু দিনের মধ্যেই।

সাম্প্রতিক আমরা দেখেছি,করোনা মহামারীতে শিক্ষাসেক্টরের প্রতি তার অগাধ ভালোবাসা ও প্রবল আগ্রহ। মহামারী  পরিস্থিতিতে সবাই যখন বাঁচার তাগিদে হোম কোয়ারান্টাইনে সময় কাটাচ্ছে, এমন কঠিন মূহুর্তে  হামিদ পারভেজ স্যার "বরিশাল অনলাইন স্কুল"  নামক অনলাইন ভিডিও ক্লাসে সম্পূর্ণ বিনা পারিশ্রমিকে এবং নিজখরচে নিয়মিত ক্লাস নিচ্ছেন। এই অনলাইন স্কুলের পাশাপাশি বিদ্যালয়ের  ফেইসবুক গ্রুপে ও তাঁর ব্যাক্তিগত ফেইসবুক আইডিতে তিনি অত্যন্ত  দক্ষতার সাথে লাইভ ক্লাস পরিচালনা করছেন। যেন শিক্ষার্থীদের কিছুটা হলেও উপকার হয়। এই ভিডিও ক্লাসে তিনি অত্যন্ত মার্জিত ও রুচিশীল বাচন ভঙ্গি, প্রমিত উচ্চারন,অগাত পাণ্ডিত্যপূর্ন্য ও সৌহার্দ্যপূন্য উপস্থাপনার মাধ্যমে তিনি ক্লাস গুলো নিচ্ছেন। 

এই ক্লাসগুলো শিক্ষার্থীরা মনোযোগ সহ শুনলে অনেক উপকার হবে।কারন এমনেই স্যার ক্লাস গুলো খুব যত্ন সহকারে গুরুত্বপূর্ণ টপিকস গুলো ব্যাখ্যা বিশ্লেষণ,এবং বাস্তবতার নিরিখে বুঝিয়ে দিচ্ছেন। তার মধ্যে আবার বোর্ড পরীক্ষায় কমন পরার অনেক সম্ভাবনা রয়েছে। 

ইতোমধ্যে অনলাইন ক্লাসে স্যারের অগ্রণী ভূমিকা সবার কাছে বেশ প্রশংসা পেয়েছে।  দৌলতখান উপজেলা প্রশাসনের কাছে অনুরোধ এই ধরনের নিবেদিত শিক্ষকদের যেন সার্বিক সহযোগিতা করা হয়।
সাথে দৌলতখানের প্রশাসন ও শিক্ষা সেক্টরের দায়িত্বশীল সকলের প্রতি অনুরোধ, এখানকার শিক্ষাব্যবস্থার প্রতি আপনাদের অগ্রনী ভূমিকা আশা করছে দৌলতখানের আপামর জনগন।

জীবননগরে ঔষধ ফার্মেসিতে ভ্রাম্যমাণ আদালত পরিচালিত

জীবননগরে ঔষধ ফার্মেসিতে ভ্রাম্যমাণ আদালত পরিচালিত




রফিকুল, জীবননগর, চুয়াডাঙ্গা : জীবননগরে ঔষধ ফার্মেসীতে ভ্রাম্যমান আদালত পরিচালিত হয়েছে। মঙ্গলবার (১৬জুন)সন্ধ্যায় এ অভিযান পরিচালিত হয় ।মেয়াদ উত্তীর্ণ ঔষধ রাখার অভিযোগে ৭টি ফার্মেসীতে অভিযান চালিয়ে ৬টিতে ১৪৫০০ টাকা নগত অর্থ জরিমানা করেছে ভ্রাম্যমাণ আদালত।

চুয়াডাঙ্গার জেলা নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট মোছাম্মদ জান্নাতুল ফেরদৌস, মোহাম্মদ ফিরোজ হোসেন, মুহাম্মদ হাবিবুর রহমানের নেতৃত্বে এবং জেলা পুলিশের সহযোগিতায় ভ্রাম্যমাণ আদালত পরিচালনা করেন। এসময় অভিযান চালিয়ে করোনা কালে সরকারের দেয়া আদেশ নির্দেশ অমান্য করা, মুখে মাক্স ব্যবহার না করা ও মেয়াদ উত্তীর্ণ ঔষধ রাখায়,শহরের হাসপাতাল গেট এলাকার ইউনাইটেড মেডিকেল হল ২০০০, জুনায়েদ ফার্মেসী ৫০০, শোভন মেডিকেল হল ৩০০০, লাইমা ফার্মেসি ৫০০ মেরাজ ফার্মেসি ৪০০০, ফাহাদ মেডিকেল হল ৫০০০টাকাসহ মোট১৪৫০০ টাকা জরিমানা করেন

কদম ফুলের সৌন্দর্যে মুগ্ধ সিরাজগঞ্জ শহরবাসী

কদম ফুলের সৌন্দর্যে মুগ্ধ সিরাজগঞ্জ  শহরবাসী





মাসুদ রানা  সিরাজগঞ্জ জেলা  প্রতিনিধিঃ
 আষাঢ় কিংবা শ্রাবণেই বাংলাদেশের গ্রাম বাংলায়  গাছে ফোটে কদম ফুল। কিন্তু সিরাজগঞ্জতে জ্যৈষ্ঠের তাপদাহে দেখা মিললো আষাঢ়ের ঘণ বর্ষায় ফোঁটা কদমের। শহরের বিভিন্ন এলাকায় এখন গাছে গাছে ছেয়ে গেছে বর্ষার এ ফুলে। প্রকৃতি থেকে হারিয়ে যাচ্ছে চিরচেনা বর্ষার স্মারক কদম ফুল। কদমের শুভ্ররাগে হৃদয় রাঙিয়ে নেয়ার সুযোগ এখন শহুরে লোকের কমই আছে।
শুধু শহর নয় গ্রাম থেকেও হারিয়ে যাচ্ছে কদম। চোখ জুড়ানো ঘন সবুজ পাতার মধ্যে সাদা-হলুদ মঞ্জুরি ফুলের চিরচেনা কদম গাছ এখন চোখে পড়ে কমই। বাদল-দিনের প্রথম কদম ফুল করেছ দান, আমি দিতে এসেছি শ্রাবণের গান/মেঘের ছায়ায় অন্ধকারে রেখেছি ঢেকে তারে এই-যে আমার সুরের ক্ষেতের প্রথম সোনার ধান
আজ এনে দিলে, হয়তো দিবে না ক্লান্ত  রিক্ত হবে যে তোমার ফুলের ডাল।
এ গান আমার শ্রাবণে শ্রাবণে তব বিস্মৃতি স্রোতের লাবনে ফিরিয়া ফিরিয়া আসিবে তরণী বহি তব সম্মান কবিগুরুর বিখ্যাত এই গানের শুভ্র কদম ফুল এখন আর রাঙাতে পারে না মানুষের মন। এক সময় সর্বত্র চোখে পড়ত কদম গাছ। বর্ষার আগমনের সাথে সাথে চোখে পড়ত সেই কদম ডালে ফোটা ফুল থোকা থোকা। বর্ষার আগমনী বার্তা নিয়ে আদিকাল থেকে কদম আমাদের প্রকৃতির শোভা বর্ধন করে আসছে।
শুধু সৌন্দর্য্য নয়, ভেষজ গুণের পাশাপাশি কদমের রয়েছে অর্থনৈতিক গুরুত্বও।বীজ থেকে চারা হয়। চারা গজানোর ৯-১০ বছরের মধ্যে ফুল ফোটে। আষাঢ় মাসে গাছে ফুল আসে। ফুলগুচ্ছ আকারে গোলাকার সাদা বর্ণের হয়ে থাকে। ফুলে সৌরভ না থাকলেও এর সাদা-হলুদ রঙ নজর কেড়ে নেয়। কদম গাছ একশ ফুট লম্বা ও ছয়-সাত ফুটেরও বেশি চওড়া হয়ে থাকে। বন্যা ও খরা সহিষ্ণু গাছ শতাব্দীর পর শতাব্দী বেঁচে থাকতে পারে। কদমের সাদা-হলুদ, পাতার সবুজ কোটি ডাল আন্দোলিত করে প্রকৃতিতে আসত বর্ষাকাল।
কদম ছাড়া বর্ষা বেমানান। প্রকৃতির ঐতিহ্য রক্ষায় সরকারি ও ব্যক্তি উদ্যেগে অন্য গাছের পাশাপাশি কদম গাছ রোপণ করা প্রয়োজন। হলুদ, শুভ্রতার সংমিশ্রণে গোলাকৃতির এই ফুল এখন কদম গাছে গাছে শোভা পাচ্ছে। কদম গাছের শাখে পাতার আড়ালে ফুটে থাকা অজস্র কদম ফুলের সুগন্ধ লোকালয় পর্যন্ত ছড়িয়ে পড়ছে। আর তাই তো কদম ফুলকে বলা হয় বর্ষার দূত। কদম ফুলের আরেকটি নাম হচ্ছে নীপ।
কদম ফুলের সৌন্দর্য্যরে মতোই আরও কিছু চমৎকার নাম রয়েছে। বৃত্তপুষ্প, সর্ষপ, ললনাপ্রিয়, সুরভী, মেঘাগমপ্রিয়, মঞ্জুকেশিনী, কর্ণপূরক, পুলকি এসবও কদম ফুলের নাম। কদম নামটি এসেছে সংস্কৃত নাম কদম্ব থেকে। কদম্ব মানে হলো যা বিরহীকে দুঃখী করে। প্রাচীন সাহিত্যের একটি বিশাল অংশজুড়ে রয়েছে কদম ফুলের আধিপত্য। মধ্যযুগের বৈষ্ণব সাহিত্যেও কদম ফুলের সৌরভমাখা রাধা-কৃষ্ণের বিরহগাথা রয়েছে।
গীতাতেও রয়েছে কদম ফুলের সরব উপস্থিতি। কদম ফুল শুধু বর্ষায় প্রকৃতির হাসি নয়, এর রয়েছে নানা উপকারিতা। কদম গাছের ছাল জ্বরের ওষুধ হিসেবে ব্যবহৃত হয়। কোনো কোনো অঞ্চলে কদম ফুল তরকারি হিসেবে রান্না করেও খাওয়া হয়। কদম গাছের কাঠ দিয়ে দিয়াশলাই তৈরি করা হয়ে থাকে। বর্ষায় প্রকৃতির সতেজ-সজীব রূপ-রস যুগ যুগ ধরে মানুষের হৃদয় জয় করে এসেছে। বর্ষাকালে বৃষ্টির পানি সব আবর্জনা ধুয়ে-মুছে পরিষ্কার করে। বন্যার পানি পলিমাটি বয়ে এনে দেশকে করে সুজলা- সুফলা। তাই তো বর্ষা ঋতু এত কাব্যময়, প্রেমময়,ঐশ্বর্যশালী। তাই বর্ষাকাল বাঙালির এত প্রিয়।
সিরাজগঞ্জ জেলা শহরের পৌর  সিরাজী রোডস্থসহ বেশ কিছু এলাকায়  ঘুরে ঘুরে  দেখা যায় কদম গাছের ডালে ডালে ছেয়ে গেছে ফুলে ফুলে । আর তার অপরূপ দৃশ্যে মুগ্ধ করছে সবাইকে।
বিশিষ্ট  সাংবাদিক  এইচ মুন্না  জানান,কৈশরে বিভিন্ন  এলাকায়  ঘুরে  কদম ফুল সংগ্রহ করে   খেলা করেছি এবং  কদম ফুলের গোটা দিয়ে মারবেল খেলা করে আনন্দ  উপভোগ  করেছি। কিন্তু  কালের চক্রে সৌন্দর্য বর্ধক এই বৃক্ষটি দিন দিন বিলপ্তি হয়ে যাচ্ছে । 
সাজু আক্তার পায়েল জানান, কদম ফুল জানিয়ে দেয় বর্ষাকালের আগমন। আমরা এই ফুল দিয়ে চুলের খোপায় পড়েছি। তাই প্রকৃতিক  
সৌন্দর্য বৃদ্ধিতে  এই বৃক্ষ  লাগানো প্রয়োজন  । তা না হলে আগমী প্রজন্ম  এ বৃক্ষ  অপরূপ দৃশ্যে মুগ্ধ থেকে বঞ্চিত হবে ।

সর্বগ্রাসী আগুন কেরে নিল- রইচ মিয়ায় শেষ অবলম্বন টুকু, সব পুড়ে ছাই, অক্ষত থাকেনি ভাত খাওয়ায় প্লেট'টিও

সর্বগ্রাসী আগুন কেরে নিল- রইচ মিয়ায় শেষ অবলম্বন টুকু, সব পুড়ে ছাই, অক্ষত থাকেনি ভাত খাওয়ায় প্লেট'টিও





স্টাফ রিপোর্টার (রাজু), নেত্রকোনা জেলার সদর উপজেলাধীন চল্লিশা-পাগলা বাজার সংলগ্ন এলাকায় আজ ভোর ৫টা ব্যাপক অগ্নিকাণ্ডের ঘটনা ঘটেছে। 

এলাকার স্থানীয় বাসিন্দা রইচ মিয়া প্রতি দিনের মতো মঙ্গলবার রাতের খাওয়া শেষে ঘুমিয়ে পড়ে আনুমানিক ১১ টার দিকে। সারারাত হালকা বৃষ্টি ও ঝড় বাতাস ছিল। 

রাত ঘনিয়ে আসার পর পর'ই বাতাসের বেগ বেগবান হতে থাকে।  রইচ মিয়া যখন স্ত্রী  আনোয়ারা বেগম সহ গভীর ঘুমে ব্যাস্ত ঠিক তখনই বিদ্যুৎ জনিত কারণে পুরো ঘরে আগুন লেগে যায়। 

এরপরও ঘুমন্ত রইচ মিয়া ও তার স্ত্রী আনোয়ারা বেগম ঘুমেই থেকে যায়। 

পরবর্তীতে সকাল ৬টার দিকে প্রতিবেশী রুহুল আমিন মিয়ার "আগুন আগুন" চিৎকার শুনে ঘুম থেকে ওঠে রইচ মিয়া ও তার স্ত্রী আনোয়ারা বেগম, ছুটে আসে এলাকার লোকজন। 

কিন্তু সেসময়ে পুরে ছাই হয়ে গেছে রইচ মিয়ার শেষ অবলম্বন টুকু। শেষ অবলম্বন বলতে রইচ মিয়ার ছিলঃ দোচালা একটি টিনের ঘর, যা সরকারি অনুদানের। ৩-৪ কেজি চাল, গরীবি আসবাব, কয়েকটি মুরগী ও প্রয়োজন সামর্থ্য অনুযায়ী কিছু হান্ডিপাতিল।

এখন রইচ মিয়া যেন সর্বহারা, দুপুরে কিভাবে খাবে সেটি'ই তার ছিল না তার উপরে রাতে ঘুমানোর জায়গা'টাও কেড়ে নিল সর্বগ্রাসী আগুন। 

রইচ মিয়া বলেন-
যাক, মন খারাপ করি না। এটা আল্লাহর প্রেরিত কোন পরিক্ষা। তবে, আমার জন্য এমতাবস্থায় নতুন ঘর তৈরি করা সম্ভব নয়। এরপরও বলবোঃ কোন না কোন ব্যাবস্থা হবেই হবে, ইনশাআল্লাহ।

মাধবপুরে বাস-পিকআপ ভ্যান মুখোমুখি সংঘর্ষে আহত ৩জন,

মাধবপুরে বাস-পিকআপ ভ্যান মুখোমুখি সংঘর্ষে আহত ৩জন,





লিটন পাঠান হবিগঞ্জ জেলা প্রতিনিধি 

হবিগঞ্জের মাধবপুর উপজেলায় ঢাকা- সিলেট মহাসড়কের জগদীশপুর নামক স্থানে কুমিল্লা সিলেট বাসের সাথে পিকআপ ভ্যানের মুখোমুখি সংঘর্ষে ৩ ব্যাক্তি আহত হয়েছেন। আহতরা হলেন, ব্রাহ্মণবাড়িয় সদর উপজেলার মজলিসপুর ইউনিয়নের দাম্রা গ্রামের,

হাজী দেলোয়ার আলীর ছেলে সুরুজ, মিয়া ( ৫০) একই এলাকার মজলিসপুর গ্রামের বিশম্ভর দাশের ছেলে প্রবোধ দাশ (৪৫) ও গফুর মিয়ার ছেলে আবু মিয়া ( ৩৫) বুধবার (১৭-জুন) দুপুর ১ টার দিকে মাধবপুর উপজেলার জগদীশপুর,

ইউনিয়নের মুক্তিযুদ্ধা চত্বরের নিকট এই, দুর্ঘটনা ঘটে।  আহত সুরুজ মিয়ার ভাই নাসির মিয়া জানান, ব্রাহ্মণবাড়িয়া থেকে একটি পিকআপ ভ্যান নিয়ে গরু আনতে যাওয়ার সময় সিলেট থেকে ছেড়ে আসা একটি কুমিল্লা সিলেট ট্রান্সপোর্ট বাসের,

সাথে জগদীশপুর মুক্তিযুদ্ধা চত্বরের, কাছে কিছুক্ষণ হোটেলের সামনে মুখোমুখি সংঘর্ষ হয়। এতে পিকআপ ভ্যানের চালক ও গরু ব্যাবসায়ী দুই যাত্রী গুরুতর আহত হয়। আহতদের উদ্ধার করে মাধবপুর উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে 

নিয়ে গেলে কর্তব্যরত চিকিৎসক তাদের, উন্নত চিকিৎসার জন্য ব্রাহ্মণবাড়িয়া আধুনিক সদর হাসপাতাল প্রেরন করেন। শায়েস্তাগঞ্জ হাইওয়ে থানার (ওসি) তৌফিকুল ইসলাম তৌফিক জানান, দুর্ঘটনার খবর পেয়ে হাইওয়ে পুলিশের,

একটি দল ঘটনাস্থলে গিয়ে গাড়ি দুটি, আটক করেছে। আহতদের চিকিৎসার জন্য হাসপাতালে প্রেরন করা হয়েছে।

করোনা আক্রান্তদের জন্য মেয়র প্রার্থী রেজাউল করিমের ‘মুক্তি আইসোলেশন সেন্টার’

করোনা আক্রান্তদের জন্য মেয়র প্রার্থী রেজাউল করিমের ‘মুক্তি আইসোলেশন সেন্টার’





রিয়াজুল করিম রিজভী প্রতিনিধি চট্টগ্রামঃ-

করোনা আক্রান্তদের জন্য নগরীর বাকলিয়ায় ব্যক্তি উদ্যোগে ৫০ শয্যার করোনা আইসোলেশন সেন্টার করছেন চট্টগ্রাম মহানগর আওয়ামী লীগের সিনিয়র যুগ্ম-সাধারণ সম্পাদক ও চট্টগ্রাম সিটি কর্পোরেশন নির্বাচনে আওয়ামী লীগ মনোনীত মেয়র প্রার্থী বীর মুক্তিযোদ্ধা আলহাজ্ব এম. রেজাউল করিম চৌধুরী।ইতোমধ্যে স্থান নির্বাচন ও প্রয়োজনীয় চিকিৎসা সরঞ্জাম ক্রয়সহ প্রাথমিক কার্যক্রম শুরু হয়েছে। 

নগরীর কালামিয়া বাজার সংলগ্ন ওয়েডিং পার্ক কমিউনিটি সেন্টারে ‘মুক্তি আইসোলেশন সেন্টার’ নামে করোনা ডেডিকেটেড আইসোলেশন সেন্টারটি প্রস্তুত করা হচ্ছে। সেখানে প্রয়োজনীয় অক্সিজেন সাপোর্টসহ কোভিড পজেটিভ রোগীদের সেবা দেওয়া হবে। 

১৬ জুন মঙ্গলবার সকাল সাড়ে ১১টায় আইসোলেশন সেন্টারটির অগ্রগতি পরিদর্শনে যান মেয়র প্রার্থী আলহাজ্ব এম রেজাউল করিম চৌধুরী। আইসোলেশন সেন্টারটি পরিদর্শনকালে তিনি বলেন, ‘ব্যক্তিগত উদ্যোগে এলাকায় এলাকায় আইসোলেশন সেন্টার ও আইসিইউ হাসপাতাল গড়ে তুলতে হবে। চট্টগ্রামে মৃত্যুর মিছিল বন্ধ করতে হবে।’

তিনি আরো বলেন, ‘বাংলাদেশের মানুষ মানবতাবাদী। একাত্তরের মুক্তির সংগ্রামে ধর্ম বর্ণ নির্বিশেষে বিভিন্ন শ্রেণি-পেশার মানুষ ঝাঁপিয়ে পড়েছিলেন। একইভাবে যেকোনো দুর্যোগ মোকাবেলাতেও দেশের মানুষ ঐক্যবদ্ধ হয়ে ঝাঁপিয়ে পড়তে হবে। আজকের করোনার এই মহাদুর্যোগ মানবতার হাত ধরে সকলকে এলাকায় এলাকায় আইসোলেশন সেন্টার বানানোর পাশাপাশি অক্সিজেন সরবরাহ অব্যাহত রাখতে হবে। একইসাথে সময়ের সাহসী যোদ্ধা ডাক্তার, নার্স, স্বাস্থ্যকর্মী ও স্বেচ্ছাসেবকদের মানবতার সেবায় এগিয়ে আসতে হবে।’

করোনা চিকিৎসায় শিল্পপতি ও ব্যবসায়ীদের সহযোগিতার হাত বাড়িয়ে দেওয়ার আহ্বান জানান মেয়রপ্রার্থী বীর মুক্তিযোদ্ধা এম.রেজাউল করিম চৌধুরী। 

এসময় তাঁর সাথে ছিলেন, সাবেক সিভিল সার্জন ডা. সরফরাজ খান চৌধুরী বাবুল, রেড ক্রিসেন্ট সোসাইটি চট্টগ্রামের চেয়ারম্যান বিএমএ কেন্দ্রীয় সহ-সভাপতি ডা. শেখ শফিউল আজম, চট্টগ্রাম মেডিকেল কলেজের ভাইস প্রিন্সিপাল ডা. নাসির উদ্দিন মাহমুদ, স্বাধীনতা চিকিৎসক পরিষদ কেন্দ্রীয় সাংগঠনিক সম্পাদক ডা. মিনহাজুর রহমান, স্থানীয় কাউন্সিলর মো. হারুনর রশিদ, কাউন্সিলর আশরাফুল আলম, ট্রেড ইউনিয়ন নেতা মো. ইফতেখার কামাল খান, সাবেক মহানগর ছাত্রলীগ সভাপতি ও আওয়ামী লীগ নেতা ফরিদ নেওয়াজ, ৩৯নং ওয়ার্ডের সাবেক কাউন্সিলর মোহাম্মদ আসলাম, কাউন্সিলর প্রার্থী রোজী আক্তার, আওয়ামী লীগ নেতা শাহাদাত আল নূরীসহ স্থানীয় আওয়ামী লীগ, যুবলীগ, ছাত্রলীগ ও মহিলা আওয়ামী লীগ নেতৃবৃন্দ।

শিক্ষিকাদের অনৈতিক প্রস্তাব! সিংড়ায় ইফার সুপারভাইজারের বিরুদ্ধে নির্যাতন ও যৌতুকের অভিযোগ দায়ের স্ত্রীর

শিক্ষিকাদের অনৈতিক প্রস্তাব!  সিংড়ায় ইফার সুপারভাইজারের বিরুদ্ধে নির্যাতন ও যৌতুকের অভিযোগ দায়ের স্ত্রীর





রাজু আহমেদ, নাটোর: 
নাটোরের সিংড়ায় ইসলামী ফাউন্ডেশনের সুপারভাইজার হাসানুজ্জামানের বিরুদ্ধে স্ত্রীর উপর শারিরিক, মানসিক নির্যাতন ও যৌতুকের অভিযোগ উঠেছে। এসব অভিযোগে উপজেলা নির্বাহী অফিসার নাসরিন বানুর বরাবর প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা গ্রহণের আবেদন করেছেন তাঁর স্ত্রী নুরুন্নাহার।  

পরিবার সুত্র ও অভিযোগে জানা যায়, ২০১৯ সালের ১৩ আগষ্ট বিবাহ বন্ধনে আবদ্ধ হন।  বিয়ের পর নুরুন্নাহার জানতে পারেন এর আগে তাঁর দুটি বিয়ে হয়েছিলো।  চারিত্রিক অবক্ষয় এবং যৌতুকলোভির কারনে দুটি বউ তালাক হয়েছে। 
নুরুন্নাহারের সাথে বিয়ের পর মেসেনজারে তাঁর স্বামীর সাথে বিভিন্ন মেয়ের অশালিন চ্যাট বন্ধ করার কথা বলার পর থেকে তাঁর উপর নেমে আসে শারিরিক ও মানসিক নির্যাতন এবং  ৫ লক্ষ টাকা যৌতুক দাবি করে নতুবা অন্যজনকে বিয়ের কথা বলতে থাকে। গত ৮ মে তাঁর নিজ বাড়ি পুঠিয়ায় স্ত্রীকে অমানুসিক নির্যাতন করে। পরে তাঁর বাবাকে ফোনে আসতে বলে ঐদিন নুরুন্নাহার  ও তাঁর বাবাকে আটকে রাখে। পরবর্তিতে সাদা স্ট্যাম্পে সই নিয়ে ছেড়ে দেয়। ১৪ জুন সকালে উপজেলা নির্বাহী অফিসার বরাবর নুরুন্নাহার অভিযোগ দিতে এলে বিষয়টি টের পেয়ে নুরুন্নাহার কে শাসন গর্জন করে। ঐদিন দুপুরে বাড়ি যাবার পথে থাঔল বাজারে তাদের পথরোধ করে নুরুন্নাহার ও তাঁর বাবাকে  কিলঘুষি সহ অভিযোগের কপি ছিনিয়ে নেবার চেষ্টা করে। এসময় স্থানীয় লোকজন এগিয়ে এসে তাদের উদ্ধার করে। 

জানা যায়, ইফার সুপারভাইজার হাসানুজ্জামান এর ফেসবুক আইডি ও মেসেনজার রয়েছে। সে মেসেনজার ব্যবহার করে বিভিন্ন মেয়েদের সাথে অশালিন চ্যাট করে। সে শিক্ষিকাদের ফোনে কু প্রস্তাবসহ অনৈতিক সম্পর্ক গড়ে তোলার চেষ্টা করে আসছে।  এর আগে তাঁর অত্যাচার ও যৌতুকলোভীর কারনে পরপর দুটি বউ তালাক হয়। সুপারভাইজার হবার সুবাদে শিক্ষিকাদের চাকুরির নানা ভয়ভীতি, বেতন বন্ধের ভয় দেখিয়ে সম্পর্ক গড়ে তোলার অভিযোগ রয়েছে।


আরো জানা যায়, ২০১৮ সালের শেষের দিকে সিংড়া অফিসে যোগদান করেন হাসানুজ্জামান। তাঁর প্রথম বউ সালমা, দ্বিতীয় বউ খাদিজা। তাঁর আচার আচরন এবং যৌতুকলোভির কারনে পরপর দুটি সংসার টিকেনি।  


হাসানুজ্জামানের স্ত্রী নুরুন্নাহার জানান, আমি ২০১৭ সালের ১ লা জানুয়ারীতে যোগদান করি। ২০১৯ সালের শেষের দিকে হাসানুজ্জামান সিংড়া উপজেলার সুপারভাইজার হিসেবে দায়িত্ব গ্রহণ করেন। তাঁর কেন্দ্রে গিয়ে পরিচয় হয় এ সুবাদে তাঁকে ফোন দেয়। আমার সাথে সখ্যতা গড়ে তুলে একসময় বিয়ের প্রস্তাব দেয়। ২০১৯ সালের ১৩ আগষ্ট ১ লক্ষ টাকার দেনমোহরে বিয়ে করেন। বিয়ের রাতে ১ লক্ষ টাকার চেক দেন। পরে সে চেকটি ফেরত নেন। বিয়ের পর হতেই যৌতুকের জন্য চাপ দিতে থাকে। বাড়ি, পুকুর, জমি লিখে দেবার জন্য চাপ দিতে থাকে। কিছুদিন পর আমার পেটে বাচ্চা আসে কিন্তু তার কয়েকদিন পর হাসানকে এই কথা জানালে ও বলে বাচ্চা নষ্ট করে দে তোর পেটের বাচ্চা নিবনা। আগে ৫ লক্ষ টাকা দে। আমি রাজি হইনা তখন বলে  তোর বাপের তো সম্পদ আছে মানুষ কর,

তবু সংসার করবো জন্য তাঁর নির্যাতন সহ্য করে শশুরালয়ে যাই। যাওয়ার ১৫দিন যাবত আমার বাড়ির কারো সাথে কোনো কথা নাই। তাঁর ফোনে আমার বাড়ি থেকে ফোন দিলে ধরেনা,  কথা বলতে দিতনা। এর মধ্য ওর দেওয়া গহনা আমার কাছে ওয়েডরপে ভিতরে রেখে তালা দেওয়া ছিল। আমি চাবি না দেয়ায় তালা ভেংগে গহনা বের করে নেয়,  বাধা দিলে আমাকে খুব মারে। পেটে লাথি,বুকের উপর উঠে খুঁচে, গলা টিপে ধরে,ওরনা দিয়ে পা বেধে  নির্যাতন করে। ঘটনা শুনতে পেরে আমার আব্বা গেলে তাঁর গায়েও হাত তুলে এবং আটকিয়ে রাখে। পরে জোড়পূর্বক একটি কাগজে সই নিয়ে আমি আমার আব্বার সাথে বাড়ি চলে আসি।  

এবিষয়ে অভিযুক্ত হাসানুজ্জামানের সাথে যোগাযোগ করা হলে তিনি জানান, সে আমার স্ত্রী,  তাঁর সাথে কিছু বনিবনা রয়েছে।  তবে অভিযোগ সত্য নয়।

সিংড়া থানার ওসি নুরে আলম সিদ্দীকি জানান, এ বিষয়ে লিখিত অভিযোগ পেয়েছি।  বিষয়টি তদন্ত করা হচ্ছে।


সিরাজগঞ্জে র‌্যাবের অভিযানে ফেন্সিডিলসহ গ্রেফতার ১

সিরাজগঞ্জে র‌্যাবের অভিযানে ফেন্সিডিলসহ গ্রেফতার ১




মাসুদ রানা জেলা প্রতিনিধিঃ
সিরাজগঞ্জ  সদর উপজেলার  সয়দাবাদে চাউলভর্তি ট্রাক হতে ফেন্সিডিল সহ ১জন মাদক ব্যবসায়ীকে গ্রেফতার করেছে    র‌্যাব-১২।
মঙ্গলবার(১৬ জুন )সন্ধ্যা ৭ টায় সিরাজগঞ্জের বঙ্গবন্ধু সেতু পশ্চিম থানাধীন সয়দাবাদ পূর্নবাসন এলাকায় মহাসড়কের উপর থেকে মাদক ব্যবসায়ীকে গ্রেফতার করা হয়।
এ সময় ফেন্সিডিল পাচারের কাজে ব্যবহৃত ট্রাকটি জব্দ করে র‌্যাব।গ্রেফতারকৃত আসমী মোঃজাহিদুল ইসলাম(৩৬)বগুড়া জেলার গাবতলী থানার তিন্নিরহাট কালাই হাটা গ্রামের মৃতঃ বদিউরজ্জামান ছেলে। 
র‌্যাব-১২ এর মিডিয়া অফিসার  সিনিয়র সহকারী
পরিচালক এম, এম, এইচ ইমরান এ তথ্য 
নিশ্চিত করেছেন। প্রেস বিজ্ঞপ্তিতে জানানো হয়, মঙ্গলবার গোপন সংবাদের ভিত্তিতে  দিনাজপুর হতে ঢাকার  উদেশ্যে ফেন্সিডিলের ১ টি বড় চালান নিয়ে আসিতেছে। সয়দাবাদ পূর্নবাসন এলাকায় বঙ্গবন্ধু ভাস্কর্য এর দক্ষিন পাশের
রাজশাহী টু ঢাকা হাইওয়ে মহাসড়কের উপর 
অস্থায়ীচেক পোষ্ট বসিয়ে ১ টি ট্রাকে তল্লাশি চালিয়ে ৪০১বোতল ফেন্সিডিল নগদ ১ হাজার  ৪ শত টাকা, ২ টি মোবাইল ফোন, এবং ৪ টি সীম, ট্রাক জব্দ সহ মাদক ব্যবসায়ীকে গ্রেফতার করা হয় । 
গ্রেফতারকৃত মাদক ব্যবসায়ীকে বঙ্গবন্ধু সেতু পশ্চিম থানায় মাদকদ্রব্য নিয়ন্ত্রণআইনে মামলা দায়ের এবং উদ্ধারকৃত আলামতসহতাকে উক্ত থানায় হস্তান্তর করা হয়েছে।

দিনাজপুর মিউনিসিপ্যাল হাই স্কুলের নব গঠিত কমিটির প্রথম অধিবেশন অনুষ্ঠিত

দিনাজপুর মিউনিসিপ্যাল হাই স্কুলের নব গঠিত কমিটির প্রথম অধিবেশন অনুষ্ঠিত




দিনাজপুর প্রতিনিধিঃ দিনাজপুর মিউনিসিপ্যাল হাই স্কুল প্রধান শিক্ষক কার্যালয়ে  নব গঠিত ম্যানেজিং কমিটির প্রথম অধিবেশন অনুষ্ঠিত হয়। উক্ত অধিবেশনে উপস্থিত ছিলেন ম্যানেজিং কমিটির সভাপতি ও দিনাজপুর পৌরসভার মেয়র সৈয়দ জাহাঙ্গীর আলম।  দিনাজপুর মিউনিসিপ্যাল হাই স্কুলের প্রধান শিক্ষক মোঃ দেলওয়ার হোসেন, শিক্ষক প্রতিনিধি মোঃ শাহ আলম ও মোঃ রিয়াজ উদ্দীন, অভিভাবক সদস্য প্রশান্ত কুমার রায় চৌধুরী, মোঃ ওয়াহেদুর রহমান ও সুর্বনা দাস। দেশে করোনা ভাইরাস মহামারী আকারে ছড়িয়ে পড়ায় প্রতিরোধমূলক হিসেবে ম্যানেজি কমিটির সভাপতি ও দিনাজপুর পৌরসভার মেয়র সৈয়দ জাহাঙ্গীর আলম বলেন, শিক্ষা প্রতিষ্ঠান খোলার পূর্বেই করোনা ভাইরাস প্রতিরোধমূলক হিসেবে জীবাণুনাশক  স্প্রে  মেশিন, শরীরের তাপমাত্রা নিয়ন্ত্রক যন্ত্র, মাস্ক ও বাস্প গ্রহণের জন্য শ্রেণিভিত্তিক কেটলীর ব্যবস্থা নেয়ার জন্য কমিটির প্রতি আহবান জানান। এছাড়াও ছাত্রছাত্রীদের ভালো ফলাফল অর্জনের স্বার্থে শিক্ষার মান বৃদ্ধির জন্য বিভিন্ন দিক নির্দেশনামূলক বক্তব্য প্রদান করেন। আলোচনা শেষে পৌর মেয়র সৈয়দ জাহাঙ্গীর আলম কমিটির সকলকে উন্নত মানের মাস্ক ও হ্যান্ডস্যানিটাইজার বিতরণ করেন।

বঙ্গবন্ধু ফাউন্ডেশন, লক্ষ্মীপুর জেলার সভাপতি, জনাব আলহাজ্ব, মিজানুর রহমান চৌধুরী অসুস্থ দেশে ও বিদেশের সকলের দোয়া কামনা

বঙ্গবন্ধু ফাউন্ডেশন, লক্ষ্মীপুর জেলার  সভাপতি, জনাব আলহাজ্ব,  মিজানুর রহমান চৌধুরী অসুস্থ দেশে ও বিদেশের সকলের দোয়া কামনা




দাইয়ানুর রহমান মিষ্টারনুরঃ

বঙ্গবন্ধু ফাউন্ডেশন,
লক্ষ্মীপুর জেলার সম্মানিত  সভাপতি, জনাব আলহাজ্ব,  মিজানুর রহমান চৌধুরী, (মিজান) খুবই অসুস্থ,
বঙ্গবন্ধু ফাউন্ডেশনের সৈনিক ও সহযোদ্ধা সুস্থতার জন্য সকলের নিকট দোয়া প্রার্থনা করছি।
দৃঘ্য দিন যাবৎ মিজান সাহেবের অসুস্থ শরীর নিয়ে আমাদের সাথে যোগাযোগ করে তার কথাতে জানতে পারি তিনি অসুস্থ।  আমরা বঙ্গবন্ধু ফাউন্ডেশন কুয়েত শাখার পক্ষথেকে আলহাজ্ব মিজানুর রহমান চৌধুরী সাহেবের জন্য সুস্থতা কামনা করছি
মহান আল্লাহ্ ছুবহানাতাআলা যেন দ্রুত সুস্থতা দান করেন।  (আমীন)

করোনার প্রতিদিন নতুন নতুন রেকর্ড তৈরি!

করোনার প্রতিদিন নতুন নতুন রেকর্ড তৈরি!



নিউজ ডেস্কঃ  আজ ( ১৭ জুন) নমুনা পরীক্ষা ১৭,৫২৭
আক্রান্ত- ৪০০৮, মৃত্যু- ৪৩ জন। আজ পর্যন্ত মোট মৃত্যু-১৩০৫,সুস্থ্য-১৯২৫, এ পর্যন্ত মোট   আক্রান্ত- ৯৮,৪৮৯

রাস্তা যেন এক মৃত্যুফাঁদ

রাস্তা যেন এক মৃত্যুফাঁদ




কাউসার আলী
চুয়াডাঙ্গা প্রতিনিধি

চুয়াডাঙ্গা জেলার দামুড়হুদা উপজেলার জুড়ানপুর ইউনিয়নের বিষ্ণুপুর গ্রামের ৩ নং ওয়ার্ডের প্রধান রাস্তাটি এখন গ্রামবাসীর কাছে মৃত্যুফাঁদে পরিণত হয়েছে।গত ২-৩ বছর থেকে ৩ নং ওয়ার্ডের গোরস্থান থেকে ইব্রাহিমপুরের গোরস্থান পর্যন্ত প্রায় এক কিলোমিটার রাস্তাটি বড় বড় গর্তে পরিণত হয়েছে। কিন্তু স্থানীয় জনপ্রতিনিধিদের সেদিকে নেই কোনো ভ্রুক্ষেপ।আসলে এটা কি রাস্তা সেটা দেখে বোঝার উপায় নেই বুঝতে হলে গভীর গবেষণার প্রয়োজন।এই রাস্তাটি হলো বিষ্ণুপুর,মজারপোতা,জুড়ানপুর থেকে ইউনিয়ন পরিষদে যাবার একমাত্র রাস্তা।প্রতিদিন এই রাস্তা দিয়ে হাজার হাজার লোক, আটোভ্যান,আলমসাধু,পাখিভ্যান যাতায়াত করে এবং প্রতিদিন কোনো না কোনো দূর্ঘটনা ঘটছে।


বারবার ৩ নং ওয়ার্ডের মেম্বার মোজাফ্ফর হোসেন এবং ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান সোহরাব হোসেনকে অবগত করলেও কোনো ফল পাওয়া যায়নি।
আসলে কোনো রাস্তাটি মেরামত করা হচ্ছেনা তা গ্রামবাসীর কাছে অজানা।কিন্তু বর্তমানে গ্রামবাসীর প্রাণের দাবি দ্রুত যেন রাস্তটি মেরমত করা হয়।

কলারোয়ায় ২ শ বোতল ফেন্সিডিলসহ মাদক ব্যাবসায়ী গ্রেফতার

কলারোয়ায় ২ শ বোতল ফেন্সিডিলসহ মাদক ব্যাবসায়ী গ্রেফতার





আজহারুল ইসলাম সাদী, সাতক্ষীরা প্রতিনিধিঃ

সাতক্ষীরা জেলার কলারোয়ায় ২শ বোতল ফেনসিডিল সহ একজন মাদক ব্যবসায়ী গ্রেফতার।
জানা গেছে, সাতক্ষীরা জেলার পুলিশ সুপার মোহাম্মদ মোস্তাফিজুর রহমান এর নির্দেশনায় কলারোয়া থানার অফিসার ইনচার্জ (ওসি) শেখ মুনীর-উল-গীয়াস এর নেতৃত্বে, পুলিশ পরিদর্শক (তদন্ত) মোঃ বুরহান উদ্দীন সহ এসআই (নিঃ)রসুবির কুমার,এসআই (নিঃ) কেএম রেজাউল করিম, এএসআই (নিঃ) কামাল হোসেন, এএসআই (নিঃ) মোঃ বাবর আলীসহ সংগীয় ফোর্সের সহায়তায় কলারোয়া থানাধীন পারখুপি গ্রামের জাহান আলির ছেলে মোঃ হাবিবুর রহমান (২২) এর বসত বাড়ীর পার্শ্ববর্তী এলাকা থেকে ফেন্সিডিলসহ ১৬ জুন গভির রাতে
গ্রেফতার করা হয়।

নীলফামারীতে নতুন করে আরও ৪ জন সহ মোট করোনায় আক্রান্ত ২৬৩

নীলফামারীতে নতুন করে আরও ৪ জন সহ মোট করোনায় আক্রান্ত ২৬৩




মোঃ হাবিবুর রহমান শাকিল ডিমলা নীলফামারী প্রতিনিধি: 


করোনা ভাইরাস আক্রান্তের সংখ্যায় নীলফামারী জেলায় নতুন করে আরও ৪ জন যুক্ত হয়েছেন।এ নিয়ে জেলা করোনা আক্রান্তে সংখ্যা দাঁড়ালো ২৬৩ জন।মঙ্গলবার(১৬ জুন)রাতে সিভিল সার্জন ডাঃ রনজিৎ কুমার বর্মন বিষয়টি নিশ্চিত করে জানান, দিনাজপুর এম আব্দুর রহিম মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালের পিসিআর ল্যাব হতে গত ৪ দিনের প্রেরিত নমুনা পরীক্ষায় এ তথ্য পাওয়া গেছে।
নতুন করে ৪ জন আক্রান্তদের মধ্যে নীলফামারী সদরে ১ নারী, সৈয়দপুর উপজেলা শহরের ইসলামবাগ মসজিদ মহল্লার ১ যুবক ও জলঢাকা উপজেলায় ২ জন রয়েছেন। এ ছাড়াও জেলা শহরের পৌর এলাকার বাবুপাড়া মহল্লার এক নারী সহ ২ জনের পুনরায় পজেটিভ রিপোর্ট এসেছে।
এ নিয়ে নীলফামারী সদরে ৮৫,সৈয়দপুর উপজেলায় ৩৬ ও জলঢাকা উপজেলায় ৪৯ জন করোনায় মোট এলাকাভিত্তিক আক্রান্ত হলেন।
উল্লেখ্যঃ পুরো নীলফামারী জেলায় এ নিয়ে করোনায় আক্রান্ত হলেন ২৬৩ জন। মৃত্যুবরন করেছেন ৬ জন। সুস্থ্য হয়ে বাড়ি ফিরেছেন ১২২ জন।

টাঙ্গাইলে ধর্ষণ ও হত্যার প্রতিবাদ ও বিচারের দাবিতে মানববন্ধন

টাঙ্গাইলে ধর্ষণ ও হত্যার প্রতিবাদ ও বিচারের দাবিতে মানববন্ধন




ডা.এম.এ.মান্নান, টাংগাইল জেলা প্রতিনিধি: লক্ষীপুর জেলার হিরামনি ও নেত্রকোনা জেলার মারুফাকে ধর্ষণ ও হত্যার প্রতিবাদ এবং বিচারের দাবিতে টাঙ্গাইল জেলা ছাত্র অধিকার পরিষদের ব্যানারে মানববন্ধন কর্মসূচি পালন করা হয়েছে।
মঙ্গলবার ( ১৬ জুন ২০২০ খ্রি. ) দুপুরে টাঙ্গাইল প্রেসক্লাবের সামনে ঘন্টাব্যাপী মানববন্ধন পালন করে বাংলাদেশ ছাত্র অধিকার পরিষদ টাঙ্গাইল জেলা শাখার নেতৃবৃন্দরা।
 
মানববন্ধন চলাকালে বক্তব্য রাখেন ছাত্র অধিকার পরিষদ টাঙ্গাইল শাখার সমন্বয়ক মো. আলিফ, কাউছার আহমেদ, প্রিয়ম, আছাদ প্রমুখ।

শৈলকুপা উপজেলায় করোনায় আক্রান্ত ৪

শৈলকুপা উপজেলায় করোনায় আক্রান্ত ৪




সম্রাট হোসেন, উপজেলা প্রতিনিধি শৈলকুপা (ঝিনাইদহ) 

১৭/০৬/২০২০ রোজ বুধবার ঝিনাইদহ জেলার শৈলকুপা উপজেলায় নতুন করে আরাও ৪ জন করোনায় আক্রান্ত হয়েছে বলে জানান শৈলকুপা উপজেলা    স্বাস্থ্য কর্মকর্তা। তবে বিশেষ কারণে তাদের নাম ঠিকানা ও পরিচয় জানানো হয়নি।

ঝিনাইদহে নতুন করে আরও ১৫ জন করোনা আক্রান্ত

ঝিনাইদহে নতুন করে আরও ১৫ জন করোনা আক্রান্ত





খোন্দকার আব্দুল্লাহ বাশার , ঝিনাইদহ জেলা প্রতিনিধি

ঝিনাইদহে নতুন করে আরও ১৫ জনের দেহে করোনাভাইরাস আক্রান্ত হয়েছে। এ নিয়ে জেলায় করোনায় আক্রান্তের সংখ্যা দাড়ালো ১১৯ জন।

সিভিল সার্জন ডাঃ সেলিনা বেগম জানান, বুধবার সকালে যশোর ও কুষ্টিয়া ল্যাব থেকে ঝিনাইদহে ১১১ টি রিপোর্ট এসেছে। এর মধ্যে ১৫ টি পজিটিভ।

আক্রান্তদের মধ্যে, সদর উপজেলায় ৩ জন, কালীগঞ্জ উপজেলায় ৩ জন, শৈলকুপা উপজেলায় ৪ জন, হরিনুকুন্ডুতে ২জন, কোটচাদপুর ২ জন এবং মহেশপুর উপজেলায় ১ জন রয়েছেন। এছাড়াও এখন পর্যন্ত সুস্থ হয়ে বাড়ী ফিরেছেন ৪৩ জন।

বুড়িচংয়ে বাকশীমুল উঃ পাড়া প্রবাসী মানবতা কল্যাণ ঐক্য ফোরামের ব্যাতিক্রমী উদ্যোগ

বুড়িচংয়ে বাকশীমুল উঃ পাড়া প্রবাসী মানবতা কল্যাণ ঐক্য ফোরামের ব্যাতিক্রমী উদ্যোগ




মারুফ হোসেন- বুড়িচং(কুমিল্লা) প্রতিনিধিঃ
     
কুমিল্লার বুড়িচং উপজেলার বাকশীমুল ইউনিয়নের বাকশীমুল গ্রামের ৩ নং ওয়ার্ডের প্রবাসীদের উদ্যোগে গত ১লা এপ্রিল ২০২০ তারিখে স্থাপিত হয় " বাকশীমুল উত্তর পাড়া প্রবাসী মানবতা কল্যাণ ঐক্য ফোরাম"। 

প্রায় ৬০ জন প্রবাসী নিয়ে এ সংগঠনটির পদার্পণ শুরু করে। করোনার প্রাদুর্ভাবে খাদ্য সমস্যার সৃষ্টি হলে প্রথম ধাপেই প্রবাসীদের উদ্যোগে ২ নং বাকশীমুল ইউনিয়ন ৩নং ওয়ার্ডের প্রায় ১৩৫ অসহায়  পরিবারকে ১০০০ হাজার টাকা করে ১ লক্ষ ৩৫ হাজার টাকা আর্থিক সহযোগিতা করা হয়। এবং ৪ টি জামে মসজিদে ইমাম ও মোয়াজ্জেমকে ২০ হাজার টাকা আর্থিক সহযোগিতা করা হয়। 

করোনার প্রাদুর্ভাব থেকে বিশ্বের সকল মানুষকে রক্ষার জন্য  প্রবাসীদের উদ্যোগে এলাকার জামে মসজিদে কোরআন খতম সহ মিলাদ ও দোয়ার আয়োজন করা হয়। সকল প্রবাসীরা তাদের পরিবার,দেশ, জাতি ও সকল প্রবাসীদের জন্য দোয়া কামনা করেন। এ করোনার সময়ে অনেক প্রবাসীরা বিভিন্ন দেশে কষ্টে দিন কাটাচ্ছে। তারা সকলে দেশবাসীর কাছে দোয়া প্রার্থনা করেছেন।

এলাকার সব মসজিদ, মাদ্রাসা, এতিমখানা সহ অসহায় গরিবদুঃখী মানুষের সেবা করাই বাকশীমুল উত্তর পাড়া প্রবাসী মানবতা কল্যাণ ঐক্য ফোরামের মূল উদ্দেশ্য।

আশাশুনিতে ইউপি সদস্য ও গ্রাম পুলিশ কর্তৃক দুর্নীতি, অনিয়মের বিরুদ্ধে সাতক্ষীরার জেলা প্রশাসক বরাবর অভিযোগ

আশাশুনিতে ইউপি সদস্য ও গ্রাম পুলিশ কর্তৃক দুর্নীতি, অনিয়মের বিরুদ্ধে সাতক্ষীরার জেলা প্রশাসক বরাবর অভিযোগ




আহসান উল্লাহ বাবলুউপজেলা   প্রতিনিধি:
আশাশুনিতে ইউপি সদস্য  রুহুল আমিন ও গ্রাম পুলিশ জেনারুল ইসলামের বিরুদ্ধে বিভিন্ন দুর্নীতি ও অনিয়মের অভিযোগে সাতক্ষীরা জেলা প্রশাসক এর কার্যালয় লিখিত অভিযোগ। মঙ্গলবার দুপুরে এ লিখিত অভিযোগ করেন। লিখিত অভিযোগ সূত্রে জানা গেছে, গত ১০/০৬/২০২০ বুধবার ফকরাবাদ গ্রামের মৃত জমাত আলী বিশ্বাসের পুত্র গ্রাম পুলিশ (দফাদার) মোস্তাজুল হক (৪৯) বাদী হয়ে আশাশুনি থানায় একটি ডায়রী করেন যার নাং (৪০২)। বড়দল ইউনিয়নের ৪ নং ওয়ার্ডের ইউপি সদস্য ও জামায়াত নেতা রুহুল আমিনের বিরুদ্ধে। অভিযোগ সূত্রে জানা গেছে, দেশের এই ক্রান্তিলগ্নে হোম কোয়ারেন্টাইনে থাকা, অসহায় গরীব দুঃখী মানুষ, খেটে খাওয়া দিন মজুর, ভ্যান চালক ও স্বল্প আয়ের মানুষের মাঝে ত্রাণ বিতরণে অনিয়ম ও দুর্নীতির অভিযোগ এবং কর্মসৃজন কর্মসূচির কাজ, বিধবা ভাতা, প্রতিবন্ধী ভাতা, মাতৃত্ব ভাতা ভি,জি,ডি, কার্ড সরকারী ঘরসহ সকল প্রকার সরকারী সাহায্যের নামে অনিয়ম ও দুর্নীতির অভিযোগ করেন। অভিযোগ ও স্থানীয় একাধিক সূত্রে জানা গেছে, মরণঘাতি করোনাভাইরাস ও ঘূর্ণিঝড় আম্ফানের তাণ্ডবে ক্ষতিগ্রস্ত হওয়া অসহায় মানুষের ত্রাণ সামগ্রী বিতরনের নামে সরকারের দেওয়া অনুদান আত্মসাৎ করেছেন। জননেত্রী শেখ হাসিনার সম্মান অক্ষুন্ন রাখার স্বার্থে গত ১৪/০৫/২০২০ ইউপি চেয়ারম্যান আব্দুল আলিম মোল্ল্যাকে অবহিত করা হলে তিনি সুকৌশলে এড়িয়ে যান । 


এদিকে জামায়াত নেতা হাফেজ রুহুল আমিনের বিরুদ্ধে সাংবাদিকদের কাছে ভিডিও বক্তব্যে বলেন, ফকরাবাদ গ্রামের খানজাহান গাজী (খানজি) এর বাক প্রতিবন্ধী মেয়ের ৩০ কেজি চাউলের কার্ড করে দেবে বলে ৩ হাজার টাকা দাবি করেন। একই গ্রামের আলিমুদ্দিন মোড়লের পুত্র সানাউল্লার কাছ থেকে ৩০ কেজি চাউলের কার্ড বাবদ ৩ হাজার টাকা, মৃত নওশের আলী গাজীর পুত্র মান্নান গাজীর কাছ থেকে জেলা পরিষদের গাছ বিক্রয়ের কথা বলে ২৬ হাজার টাকা, বুড়িয়া গ্রামের পাগলা গাজীর পুত্র বাক প্রতিবন্ধী মোসলেম গাজীর কাছ থেকে প্রতিবন্ধীর কার্ড করার কথা বলে ৩ হাজার ৫০০ টাকা, একই গ্রামের মৃত রাজ্জাক গাজীর স্ত্রী সকিনা'র কাছ থেকে ঘর দেওয়ার কথা বলে ১৮ হাজার টাকা, আসাদ গাজীর পুত্র শহীদ গাজীর কাছ থেকে ৩ হাজার টাকা, শ্রীপদ রায়ের স্ত্রীর পেগনেন্ট এর কার্ড করে দেওয়ার কথা বলে ৬ হাজার টাকা, আনার আলী সরদারের কন্যা চায়না'র কাছ থেকে কার্ড করে দেওয়ার কথা বলে ৫০০ টাকা, কবির আহমেদ মোল্ল্যার স্ত্রী জোহরা খাতুন'র কাছ থেকে বয়স্ক ভাতার কার্ড করে দেওয়ার কথা বলে ৪ হাজার টাকা হাতিয়ে নিয়েছেন। এছাড়াও অডিও এবং ভিডিও সহ একাধিক তথ্যপ্রমাণ আছে বলে জানিয়েছেন। ভিজিএফ, ভি,জি,ডি, বয়স্ক ভাতা, বিধবা ভাতা, প্রতিবন্ধী ভাতার কার্ড প্রতি ৩ থেকে ৪ হাজার টাকা নেওয়া, ঈদুল ফিতরের চাউল কূটকৌশলে ৫ থেকে ১০ নামের স্লীপ করে চাউল বাড়ি নেওয়া এবং এলাকায় জুয়া খেলানো ও টাকার বিনিময় বাল্যবিবাহ দেওয়া সহ বিভিন্ন দুর্নীতি ও অনিয়মের অভিযোগ রয়েছে। উল্লেখ্য ২০১৯ সালে ঈদুল ফিতরের চাউলে দুর্নীতি করায় সাতক্ষীরা থেকে প্রকাশিত দৈনিক দৃষ্টিপাত সহ বিভিন্ন অনলাইন পত্রিকা নিউজ হয় তারপরেও থেমে থাকেনি দুর্নীতি ও অনিয়মের কাজ। এলাকার গরীব অসহায় ব্যক্তিদের দুর্বলতার সুযোগ নিয়ে বিভিন্ন সময়ে বিভিন্ন ধরনের সরকারী কার্ড ও অনুদান দেওয়ার প্রলোভন দেখিয়ে অদৃশ্য শক্তি খাটিয়ে দুর্নীতি করেছেন। দুর্নীতিকারী  রুহুল আমিনের কাছে জানতে চাইলে তিনি কোনো উত্তর দেননি। সাতক্ষীরা জেলা প্রশাসক ও পুলিশ সুপার এবং উপজেলা নির্বাহী অফিসারের হস্তক্ষেপ কামনা করছেন এলাকার সচেতন মহলসহ অসহায় ও প্রতিবন্ধীরা।