পিরোজপুরের সাবেক ভিপি রানা তার দুই কন্যা সন্তানকে মা ফাতেমার জীবনীর অনুসারী করতে চান

পিরোজপুরের সাবেক ভিপি রানা তার দুই কন্যা সন্তানকে মা ফাতেমার জীবনীর অনুসারী করতে চান





মিঠুন কুমার রাজ, 
পিরোজপুর জেলা প্রতিনিধি। 
 
মহান আল্লাহ আপনার ইসলাম ধর্মের পবিত্র কোরআনের পবিত্র জীবন ব্যবস্থার নির্দেশ মতে ও দুনিয়া জীবন থেকে আখিরাতের জীবন অনেক বেশি গুরুত্বপূর্ন। 
ওদের কলবে এই সঠিক বুঝের রহমত দান করুন ।
 মা ফাতেমার জীবন অনুশীলনের তৌফিক দাও। 
আখিরাতে মা ফাতেমা সহ ২৫ রমনির সঙ্গী করে নিও। ওদের হৃদয় পরিপূর্ণ ইমানি শক্তিদান করে দাও। প্রিয় নবী হযরত মুহাম্মদ( সঃ) এর উম্মাতি হিসেবে রহমতের সুস্থ জীবন পৃথিবী ও আখিরাতের শান্তির পবিত্র জীবন উপহার দান করুন....

"খুব অল্প সময়ের জন্য এই পৃথিবীতে আশা তোমার মুসলিম এক বান্দা।
হে মহান সৃষ্টিকর্তা এই পৃথিবীর আসমান-জমিন-পাহাড়-পর্বত- বাতাস -আগুন-পানি, সাগর-লোহা- জীন-মানুষ এবং সকল মাখলুকাত,  সৃষ্টির একমাত্র স্রষ্টা আখিরাতের ও ন্যায় বিচারক বেহেস্তো ও দোজখ এর একক মালিক দয়ালু মেহেরবান হে মহান স্রষ্টা আল্লাহ। 
আমাদের সবাইকে হেদায়েত ও রহমত দান করে ইসলামের ঈমানের রহমতের শক্তি দাও। 

তোমার রহমতের কন্যা সন্তান রুপন্তী ও প্রিয়ন্তী রক্তের বন্ধনে আবদ্ধ এই পৃথিবীর এক মুসলমান "পিতা"।

ইন্দুরকানী‌তে ‌গলায় ফাঁস দিয়ে এক যুবকের আত্মহত্যা!

ইন্দুরকানী‌তে ‌গলায় ফাঁস দিয়ে এক যুবকের আত্মহত্যা!





মিঠুন কুমার রাজ, 
পিরোজপুর জেলা প্রতিনিধি। 
‌পি‌রোজপু‌রের ইন্দুরকানী‌তে এক যুবক আত্মহত্যা ক‌রে‌ছে ব‌লে ধারনা কর‌ছে পু‌লিশ। শ‌নিবার সন্ধ্যায় উপ‌জেলার গাবছিয়ায় নানা ইউনুস আলী হাওলাদা‌রের বা‌ড়ির খাবার ঘ‌র থে‌কে মোহাম্মদ ইমনের (২০) ঝুলন্ত লাশ উদ্ধার করা হয়।

 ইমন পি‌রোজপুর জেলা সদ‌রের নামাজপুর গ্রা‌মের র‌ফিকুল ইসলা‌মের মেঝ ছে‌লে। গামছা দি‌য়ে গলায় ফাঁস দি‌য়ে আত্মহত্যা ক‌রেন ইমন ব‌লে তার পা‌রিবা‌রিক সূ‌ত্রে জানা যায়। দুই ভাই ও তিন বো‌নের ম‌ধ্যে ইমন মেঝ। ইমন খুলনার এক‌টি চাই‌নিজ রেস্টু‌রেন্টে কাজ কর‌তেন। 

এর আ‌গে ২০১৮ সা‌লের এ‌প্রিলে তুচ্ছ ঘটনা‌কে কেন্দ্র ক‌রে ইম‌নের নবম শ্রেনী‌তে পড়ুয়া বোন ‌রি‌বি আক্তার ওড়না দি‌য়ে গলায় ফাঁস লা‌গি‌য়ে আত্মহত্যা ক‌রেন ব‌লে জানা যায়। প্রে‌মে ব্যর্থ হ‌য়ে ইমন অ‌ভিমান ক‌রে আত্মহত্যা ক‌রে‌ছে ব‌লে স্থানীয় সূ‌ত্রে জানা যায়।

 মারা যাওয়ার আ‌গে নিজ হা‌তে এক‌টি চিরকুট লি‌খে যায় ইমন। যা‌তে লেখা ছিল 'আমি মারা গে‌লে কেউ কোন দায়ী না। আ‌মি যা‌কে ভা‌লোবা‌সি তা‌কে আ‌মি পাই নাই। আমার জীব‌নের কোন দাম নাই। সবার কা‌ছে আ‌মি ক্ষমা চাইলাম।'



ইন্দুরকানী থানার ও‌সি হা‌বিবুর রহমান জানান,  ইমন না‌মের যুবক আত্মহত্যা ক‌রে‌ছে ব‌লে প্রাথ‌মিক ভা‌বে ধারনা করা হ‌চ্ছে। লাশ উদ্ধার ক‌রে ময়না তদ‌ন্তের জন্য ম‌র্গে প্রেরণ করা হবে। তদন্ত সা‌পে‌ক্ষে ব্যবস্থা নেয়া হ‌বে।

পিরোজপুর জেলার ইতিহাস ও কিসের জন্যে বিখ্যাত

পিরোজপুর জেলার ইতিহাস ও কিসের জন্যে বিখ্যাত





মিঠুন কুমার রাজ, 
পিরোজপুর জেলা প্রতিনিধি।

  "পিরোজপুর শাহের আমল থেকে ভাটির দেশের পিরোজপুর, বেনিয়া চক্রের ছোয়াচ লেগে পাল্টে হলো পিরোজপুর" উপরোক্ত কথন থেকে পিরোজপুর নামকরণের একটা সূত্র পাওয়া যায়। নাজিরপুর উপজেলার শাখারী কাঠির জনৈক হেলাল উদ্দীন মোঘল নিজেকে মোঘল বংশের শেয় বংশধর হিসেবে দাবি করেছিলেন বলে জানা যায়। বাংলার সুবেদার শাহ।। সুজা আওরঙ্গজেবের সেনাপতি মীর জুমলার নিকট পরাজিত হয়ে বাংলার দক্ষিণ অঞ্চলে এসে আত্মগোপন করেন। এক পর্যায়ে নলছিটি উপজেলার সুগন্ধা নদীর পাড়ে একটি কেল্লা তৈরি করে কিছুকাল অবস্থান করেন। মীর জুমলার বাহিনী এখানেও হানা দেয়, শাহ সুজা তাঁর দুই কন্যাসহ আরাকান রাজ্যে পালিয়ে যান। সেখানে তিনি অপর এক রাজার চক্রান্তে নিহত হন। পালিয়ে যাওয়ার সময় তাঁর স্ত্রী ও এক শিশুপ্রত্র রেখে যান। পরবর্তীতে তারা অবস্থান পরিবর্তন করে ধীরে ধীরে পশ্চিমে চলে আসে এবং বর্তমান পিরোজপুরের পাশ্ববর্তী দামোদর নদীর মুখে আস্তানা তৈরি করেন। এ শিশুর নাম ছিল ফিরোজ এবং তাঁর নামানুসারে হয় ফিরোজপুর। কালের বিবর্তনে ফিরোজপুরের নাম হয় 'পিরোজপুর'। পিরোজপুর ১৯৫৯ সালের ২৮ অক্টোবর পিরোজপুর মহকুমা এবং পরবর্তীতে ১৯৮৪ সালে জেলার রূপান্তরিত হয়।

বিখ্যাত খাবার

পেয়ারা

নারিকেল

সুপারি

আমড়া

বিখ্যাত স্থান

রায়েরকাঠি জমিদারবাড়ি

মঠবাড়িয়ার সাপলেজা কুঠিবাড়ি

প্রাচীন মসজিদ

মঠবাড়িয়ার মমিন মসজিদ

শ্রীরামকাঠি প্রণব মঠ সেবাশ্রম

গোপালকৃষ্ণ টাউন ক্লাব

শেরেবাংলা পাবলিক লাইব্রেরি

মাঝের চর মঠবাড়িয়া

পাড়েরহাট জমিদারবাড়ি

বলেশ্বরঘাট শহীদ স্মৃতিস্তম্ভ

রিভারভিউ ইকোপার্ক

সারেংকাঠী পিকনিক স্পট

স্বরুপকাঠীর পেয়ারা বাগান

কবি আহসান হাবিব এর বাড়ী

কুড়িয়ানা অনুকুল ঠাকুরের আশ্রম।

ঘূর্ণিঝড় আম্ফানে ক্ষতিগ্রস্থদের মাঝে লিডার্সের খাদ্য উপহার বিতরণ

ঘূর্ণিঝড় আম্ফানে ক্ষতিগ্রস্থদের মাঝে  লিডার্সের খাদ্য উপহার বিতরণ






আহসান  উল্লাহ  বাবলু  আশাশুনি ( সাতক্ষীরা) প্রতিনিধিঃ

সুপার সাইক্লোন আম্ফানে ক্ষতিগ্রস্ত আশাশুনির মানুষকে সংকটময় পরিস্থিতি মোকাবেলায় খাদ্য উপহার বিতরণ করা হয়েছে। শনিবার (২০ জুন) সকাল ১০ টায় লিডার্স বাস্তবায়নাধীন “জলবায়ু পরিবর্তনে ঝুঁকিপূর্ণ জনগণের জীবন জীবিকা নিরাপত্তা শক্তিশালীকরণ কার্যক্রম” প্রকল্পের আওতায় আশাশুনি সদর ইউনিয়নে ক্ষতিগ্রস্থ ২০৫ পরিবারের মাঝে খাদ্য উপহার প্রদান করা হয়।
জলবায়ু পরিবর্তনের ক্ষতিকর প্রভাবের প্রত্যক্ষ শিকার বাংলাদেশের দক্ষিণ-পশ্চিম উপকূলীয় এলাকা। ঘন ঘন প্রাকৃতিক দুর্যোগের তান্ডবে উপকূলীয় এলাকাবাসীর জীবন দুর্বিসহ হয়ে উঠেছে। টেকসই বাঁধ না থাকায় প্রতিবছর জান মালের ব্যাপক ক্ষয়ক্ষতি হচ্ছে এবং নদীর পানিতে বিস্তীর্ণ এলাকা প্লাবিত হচ্ছে। ঘূর্ণিঝড় আম্ফানে বাঁধ ভেঙ্গে এ এলাকার মানুষ মাথা গোজার ঠাঁইটুকু হারাতে বসেছে। অধিকন্তু খাদ্য ও সুপেয় পানির তীব্র সংকটে ভুগছে উপকূলীয় জনগণ। এসব পরিবারকে প্রতি পরিবারের জন্য চাল  ১০ কেজি, ডাল ১ কেজি, আলু ২ কেজি, তেল ১ লিটার, লবণ-১ কেজি, সাবান ১ টি, মাস্ক ৩টি, স্যানিটারী ন্যাপকিন ১ প্যাকেট, স্যালাইন ৪ প্যাকেট করে প্রদান করা হয়। সামাজিক দূরত্ব মেনে এই কর্মসূচী পালন করা হয়। আশাশুনি সদর  ইউনিয়নের চেয়ারম্যান স ম সেলিম রেজা মিলন উপস্থিত থেকে ক্ষতিগ্রস্থদের হাতে খাদ্য উপহার তুলে দেন। এছাড়া গত ২৮ মে থেকে আশাশুনি সদর ইউনিয়নে প্রতিদিন ৪০০০ লিটার সুপেয় পানি বিতরণ অব্যাহত রয়েছে।

প্লাবিত হাজার হাজার মানুষের মানবেতর জীবন যাপন আশাশুনিতে ঘুর্ণিঝড় আম্ফানে ভেঙ্গে যাওয়া ভেড়ী বাঁধ রক্ষা সম্ভব হয়নি

প্লাবিত হাজার হাজার মানুষের মানবেতর জীবন যাপন আশাশুনিতে ঘুর্ণিঝড় আম্ফানে ভেঙ্গে  যাওয়া ভেড়ী বাঁধ রক্ষা সম্ভব হয়নি


  আহসান  উল্লাহ  বাবলু  আশাশুনি ( সাতক্ষীরা) প্রতিনিধিঃ সুপার সাইক্লোন আম্ফানের তান্ডবে আশাশুনি উপজেলার বিভিন্ন ইউনিয়নের পানি উন্নয়ন বোর্ডের ভেড়ী বাঁধ ভেঙ্গে যাওয়ার পর এক মাস অতিবাহিত হলেও বাঁধ রক্ষা সম্ভব হয়নি। ফলে ভাঙ্গন কবলিত অসহায় মানুুষ মানবেতর জীবন যাপন করছে। উপজেলার আশাশুনি সদর, প্রতাপনগর, শ্রীউলা ইউনিয়নের ভেঙ্গে যাওয়া পাউবো’র ভেড়ী বাঁধ এখনো পুন: নির্মান সম্ভব হয়নি। কিছু স্থানে রিং বাঁধ দিয়ে সাময়িক ভাবে কিছু এলাকা রক্ষার উদ্যোগ নেওয়া হলেও তার কিছু পুনরায় ভেঙ্গে একাকার হয়ে গেছে। ফলে প্লাবিত এলাকা নদীর জোয়ার ভাটার পানি উঠানামা করায় ঘরবাড়ি, মৎস্য ঘের, জমির ফসল নিয়মিত নিমজ্জিত হয়ে যাচ্ছে। লবণাক্ত পানিতে গ্রামের পর গ্রাম নিমজ্জিত ও জলমগ্ন থাকায় মানুষ কুলকিনারা খুজে পাচ্ছেন না। খোলপেটুয়া নদী ও কপোতাক্ষ নদের জোয়ার ভাটায় এলাকা এখন একাকার হয়ে গেছে। স্কুল, মাদ্রাসা, মসজিদ, মন্দির, গবাদিপশু, খামারিদের সম্বল, জমির ফসল ও মৎস্য ঘেরের মাছ ভেসে গিয়ে মানুষকে নিঃশ^ করে দিয়েছে। টোং ঘর বেঁধে, ভেড়ী বাঁধে কিংবা আশ্রয় কেন্দ্রে বসবাসের স্থায়ীত্ব কত দিনের হবে তা ভেবে কুলকিনারা করতে পারছেন না কেউ। পরিবারের আয়ের উৎস শেষ সম্বল মাছ ধরার নৌকায়ও কেউ কেউ বাসগৃহ করে ভাসমান বসবাস করছে। এলাকা ছেড়ে অন্যত্র চলেও গেছে কিছু কিছু পরিবার।প্রতি বছর নদী ভাঙ্গনের কবলে পড়ে ইউনিয়ন বা গ্রামের মানচিত্র পরিবর্তন হতে হতে ভিন্নচিত্রে এসে দাড়িয়েছে। প্রতি বছর বাঁধ ভাংছে এবং প্রতি বছর সাময়িক ভাবে রক্ষার লক্ষ্য নিয়ে বাঁধের কাজ করায় এলাকার মানুষ সর্বশান্ত হয়ে যাচ্ছে। সরকার সেনাবাহিনীর মাধ্যমে বাঁধ নির্মানের ঘোষণা এলাকাবাসীকে আশ^স্থ করেছে। টেঁকসই বেড়ীবাঁধ নির্মাণের জন্য মাননীয় প্রধানমন্ত্রী তড়িৎ পদক্ষেপের মাধ্যকে নিয়মিত ভাঙ্গন ক্রিয়া প্রতিরোধে যথাযথ ব্যবস্থা নেবেন এদাবীএলাকাবাসী সকলের।

মিরসরাই সদর ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের পুর্নাঙ্গ কমিটির অনুমোদন

মিরসরাই সদর ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের পুর্নাঙ্গ কমিটির অনুমোদন




মিরসরাই প্রতিনিধি

বাংলাদেশ আওয়ামী লীগ ৯ নং মিরসরাই সদর ইউনিয়ন শাখার পুর্নাঙ্গ কমিটির অনুমোদন দিয়েছেন সংগঠনটির মিরসরাই উপজেলা শাখা। শনিবার ( ২০ জুন) বিকেলে মিরসরাই উপজেলা আওয়ামী লীগ কার্যালয়ে উপজেলা কমিটি ৬৯ সদস্য বিশিষ্ট কমিটির অনুমোদন দেন। 

এর আগে মিঠছরায় এক বর্ণাঢ্য কাউন্সিলে সভাপতি পদে শামছুল আলম দিদার এবং সাধারণ সম্পাদক পদে সাইফুল ইসলাম নির্বাচিত হয়েছিলেন। 

মিরসরাই সদর ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক সাইফুল ইসলাম জানান, শনিবার মিরসরাই উপজেলা আওয়ামী লীগের এক সভায় মিরসরাই সদর ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের ৬৯ সদস্য বিশিষ্ট পুর্নাঙ্গ কমিটির অনুমোদন দেওয়া হয়েছে। এর মাধ্যমে দলীয় কর্মকান্ডে নতুন উদ্যোমের সূচনা হবে ।

কমিটির অনুমোদন দেওয়ায় মিরসরাইয়ের গনমানুষের নেতা সাবেক সফল মন্ত্রী ইঞ্জিনিয়ার মোশাররফ হোসেন এবং ডিজিটাল বাংলাদেশ বিনির্মানের অন্যতম রুপকার মিরসরাই'র আগামীর কর্ণধার আইটি বিশেষজ্ঞ  মাহবুব রহমান রুহেল সহ মিরসরাই উপজেলা আওয়ামী লীগ নেতৃবৃন্দের প্রতি কৃতজ্ঞতা প্রকাশ করেন তিনি। 

মিরসরাই সদর ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের সভাপতি শামছুল আলম দিদার বলেন, আমাদের প্রাণপ্রিয় নেতা ইঞ্জিনিয়ার মোশাররফ হোসেনের নেতৃত্বে বাংলাদেশ আওয়ামী লীগ মিরসরাই ইউনিয়ন কমিটি ঐক্যবদ্ধ। মিরসরাই সদর ইউনিয়ন কমিটি অনুমোদনের মাধ্যমে সকল নেতা কর্মী জননেত্রী শেখ হাসিনার হাতকে আরো শক্তিশালী করার অনুপ্রেরণা পাবে। আওয়ামী লীগের মিরসরাই উপজেলা কমিটির নেতৃত্বে ঐক্যবদ্ধ থেকে আমাদের রাজনৈতিক অভিভাবক ইঞ্জিনিয়ার মোশাররফ হোসেন এবং প্রধানমন্ত্রী জননেত্রী শেখ হাসিনার হাতকে শক্তিশালী করতে নতুন অনুমোদিত এই কমিটি ঐক্যবদ্ধ ভাবে কাজ করে যাবে।

কোভিড – ১৯ ও সচেতনতা

কোভিড – ১৯ ও সচেতনতা





মেহেরাবুল ইসলাম সৌদিপঃ
বাংলাদেশে করোনা আক্রান্ত রোগী দিন দিন বেড়েই চলেছে। একজন থেকে এক লক্ষ ছুঁই ছুঁই। হয়তো কিছুদিন পর কয়েক লাখ ছাড়াবে। জাতির এই ক্রান্তিলগ্নে স্বাস্থ্য অধিদপ্তরের নির্দেশনা মেনে নিরাপদে থাকা উচিত।

বর্তমানে দেখা যাচ্ছে যে, মানুষ নিজের স্বাস্থ্য সচেতনতা বা নিরাপত্তার চেয়ে অন্যের নিরাপত্তা নিয়ে বেশি উদ্বিগ্ন। ব্যাপারটা এমন দাঁড়িয়ে যে, আমাদের আশেপাশের কেউ স্বাস্থ্য সচেতনতা মেনে চলছে কিনা, এটা নিয়ে আমরা অনেক প্যানিক হচ্ছি। কিন্তু নিজে ব্যাক্তিজীবনে কতটুকু সচেতন, তার দিকে খেয়াল সীমিত আমাদের। আমরা অন্যের ব্যাক্তিগত জীবনকে অনেকাংশেই নিজের জীবন ভেবে থাকি। যা এক বিংশ শতাব্দীতে এসে কাম্য নয়।

করোনা ভাইরাসটি সামগ্রিক ব্যাপার। একা কারো পক্ষে এটা নিঃশেষ করে, দেয়া সম্ভব নয়। ফ্রন্ট লাইনার যারা আছেন, ডাক্তার, পুলিশ, সেনাবাহিনীসহ অন্যান্য সংগঠনের পাশাপাশি নিজের জায়গা থেকে সচেতন থাকতে হবে। এই অদৃশ্য পরজীবি আমাদের স্বাভাবিক জীবনকে ব্যাহত করেছে। তাই আমাদের সকলের উচিত নিজ নিজ জায়গা থেকে করোনাকে প্রতিহত করার চেষ্টা করা। অন্যের স্বাস্থ্য সচেতনতা খেয়ালের পাশাপাশি, নিজের স্বাস্থ্য সচেতনতার দিকে ও গভীর মনোযোগ দেয়া।

হবিগঞ্জে নতুন রেকর্ড সংখ্যক ৬৯ জন করোনা রোগী শনাক্ত,

হবিগঞ্জে নতুন রেকর্ড সংখ্যক ৬৯ জন করোনা রোগী শনাক্ত,





লিটন পাঠান হবিগঞ্জ জেলা প্রতিনিধি

হবিগঞ্জ জেলায় একদিনে নতুন রেকর্ড সংখ্যক করোনা রোগী শনাক্ত হয়েছেন। শনিবার (২০-জুন) ঢাকা থেকে আসা ফলাফলে জেলার বিভিন্ন উপজেলায় ৬৯ জন রোগী শনাক্ত হয় এ নিয়ে জেলায়, 

করোনা রোগীর সংখ্যা দাড়িয়েছে ৩৪৫, জনে শনিবার সন্ধ্যায় হবিগঞ্জের ডেপুটি সিভিল সার্জন ডা. মুখলেছুর রহমান উজ্জ্বল বিষয়টি জানিয়েছেন।

তিনি জানান- ১৭ ও ১৮ জুন হবিগঞ্জ, থেকে পাঠানো নমুনা পরীক্ষা করে ফলাফল শনিবার পাওয়া যায়। ফলাফলে ৬৯ জনের করোনা শনাক্ত হয়।

এপর্যন্ত জেলায় মোট শনাক্ত হয়েছেন, ৩৪৫ জন, সুস্থ হয়েছেন ১৫৮ জন এবং এক শিশু ও এক স্বাস্থ্যকর্মীসহ মারা গেছেন ৪ জন।

উলিপুরে ব্রহ্মপুত্র নদের ভাঙ্গনরোধে জিও ব্যাগ ডাম্পিং শুরু

উলিপুরে ব্রহ্মপুত্র নদের ভাঙ্গনরোধে  জিও ব্যাগ ডাম্পিং শুরু




কৃষ্ণ সরকার পীযূষ, ভ্রাম্যমাণ প্রতিনিধি:
কুড়িগ্রামের উলিপুরে হাতিয়া ইউনিয়নের ব্রহ্মপুত্র নদে বর্ষা মৌসুমে ভাঙ্গন তীব্র হওয়ার পূর্বেই ভাঙ্গনরোধে প্রায় ৮ কোটি ৪৭   লাখ টাকা প্রকল্পে ব্যয়ে  প্রথম ব্লক পালের ঘাটে ও দ্বিতীয় ব্লক হাতিয়ার গ্রামে ১০০০ মিটারে এক লক্ষ চল্লিশ হাজার  বালু ভর্তি জিও ব্যাগ ফেলানো হবে। ইতিমধ্যে প্রায় ৬৭ হাজার জিও ব্যাগে বালুভর্তি  করে ডাম্পিং শুরু করেছে পানি উন্নয়ন বোর্ড।

প্রায় ১ বছর পূর্বে সামাজিক যোগাযোগ ও বিভিন্ন গণমাধ্যমে উঠে আসে হাতিয়া তীব্র নদী ভাঙ্গনের বিষয়টি। এরই প্রেক্ষিতে স্থানীয় সংসদ সদস্য অধ্যাপক এম এ মতিন  বিষয়টি নজরে আসলে পানি সম্পদ প্রতিমন্ত্রী জাহিদ ফারুক এমপি সহ ভাঙ্গন কবলিত এলাকা পরিদর্শন করেন।

দ্রুত ভাঙ্গন রোধে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে বলে স্থানীয় মানুষকে আশ্বস্ত করেন। এরই প্রেক্ষিতে প্রায় ২০/২৫ দিন থেকে বেলাল কনস্ট্রাকশন ও জেভি এম এম বিল্ডার্স ঠিকাদার প্রতিষ্ঠান এর আওতায় জিও ব্যাগে বালুভর্তি  কাজ দ্রুত গতিতে চলছে।

জানা যায় ,১১/০৬/২০২০ ইং তারিখে  নির্বাহী প্রকৌশলী সহ উর্দ্ধতন কর্মকর্তারা উপস্থিত থেকে বালু ভর্তি জিও ব্যাগ মার্কিং করেন।

স্থানীয় ইউপি চেয়ারম্যান বিএম আবুল হোসেন বলেন, সামনে বর্ষাকালে ধরলা নদী ও ব্রহ্মপুত্র নদের পানি বৃদ্ধি পেলে স্রোত বেড়ে যাবে  ফলে জিও ব্যাগ সঠিকভাবে ডাম্পিং করতে অনেকটা বিঘ্নিত হবে। তাই যথাসময়ে ডাম্পিং এর কাজ শেষ করার জোর দাবি জানান।

উপ-সহকারী প্রকৌশলী  মোঃ শরিফুল ইসলাম জানান, পালের ঘাট হতে হাতিয়ার গ্রাম পর্যন্ত ভাঙ্গন ঠেকাতে জরুরী ভিত্তিতে অস্থায়ীভাবে ডাম্পিং করা হচ্ছে। জুলাই মাসের মধ্যে কাজ শেষ হবে বলে আশ্বস্ত করেন।

পানি উন্নয়ন বোর্ডের  কার্য সহকারী মানিক মিয়া বলেন, ড্রেজিং এর পাশাপাশি জিও ব্যাগে বালু ভর্তি সর্বদা উপস্থিত থেকে তদারকি করে আসছেন অনিয়ম করার সুযোগ নেই।

স্থানীয়রা অভিযোগ করেন, তদারকি জোরদার করার জন্য উর্দ্ধতন কর্মকর্তাদের থাকার কথা থাকলেও তারা শুধু  কিছুক্ষণের জন্য এসেই চলে যান। তাদেরকে সবসময় মাঠে খুঁজে পাওয়া যায় না। বালুর সূক্ষ্মতার গুণাঙ্ক  ও জিও ব্যাগের ভর  নিয়েও প্রশ্ন তোলেন জনগন।

স্থানীয় পানি উন্নয়ন বোর্ড বলছে, প্রায় এক কিলোমিটার এলাকায় ভাঙ্গনের মাত্রা সবচেয়ে বেশি হওয়ায় এর মধ্যে  দ্রুত কাজ শুরু হয়েছে।

 উল্লেখ্য চলতি মৌসুমে নদীর তীব্র ভাঙ্গনে প্রায় ৭০০ পরিবার বসতভিটা নদীগর্ভে বিলীন হয়েছে।

নওগাঁর সাপাহারে গরু ছাগলের হাটে অতিরিক্ত খাজনা আদায়: ভ্রাম্যমাণ আদালতে জরিমানা

নওগাঁর সাপাহারে গরু ছাগলের হাটে অতিরিক্ত খাজনা আদায়: ভ্রাম্যমাণ আদালতে জরিমানা





রাজশাহী ব্যুরোঃ
 নওগাঁর সাপাহারে গরুর-ছাগলের হাটে অতিরিক্ত খাজনা আদায় করা হচ্ছে ভোক্তা সাধারণের এমন অভিযোগের প্রেক্ষাপটে ভ্রাম্যমাণ আদালত সেখানে উপস্থিত হয়। যাচাই করে অভিযোগের সত্যতা পাওয়ায়, গরু ছাগলের অতিরিক্ত খাজনা আদায় করার দায়ে ভ্রাম্যমাণ আদালতে ইজারাদারের ১০ হাজার টাকা জরিমানা করা হয়েছে। 

শনিবার বিকেলে সাড়ে ৩ টায় উপজেলার সদরের তাজপুরে সাপ্তাহিক গরু ছাগলের হাটে নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট ও সহকারী কমিশনার (ভূমি) সোহরাব হোসেন এর নের্তৃত্বে গঠিত ভ্রাম্যমাণ আদালত অভিযান পরিচালনা করে এ দন্ডাদেশ দেন।

এসময় সরকারী ভাবে নির্ধারিত মূল্যে খাজনা আদায় করা, হাট চলাকালীন সময়ে স্বাস্থ্যবিধি মেনে চলা সহ হাটে মাস্ক ব্যবহারে সবাইকে উদ্বুদ্ধ করতে যথাযথ ব্যবস্থা গ্রহণ ইজারাদারকে প্রয়োজনীয় নির্দেশনা প্রদান করেন নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট ও সহকারী কমিশনার(ভূমি) সোহরাব হোসেন। তিনি এসময় উপস্থিত ক্রেতাসাধারণকেও সাস্থ্যবিধি মেনে চলার বিষয়ে উদ্বুদ্ধ করেন।

মরহুম নাসিম স্বরণে সিরাজগঞ্জ সদর হরিণা বাগবাটি বালিকা উচ্চ বিদ্যালয়ে দোয়ার মাহফিল

মরহুম নাসিম স্বরণে সিরাজগঞ্জ সদর হরিণা বাগবাটি বালিকা উচ্চ বিদ্যালয়ে দোয়ার মাহফিল




মোঃমাসুদ রানা :
মরহুম নাসিম স্বরণে সিরাজগঞ্জ সদর হরিণা বাগবাটি বালিকা উচ্চ বিদ্যালয়ে দোয়ার মাহফিল আয়োজন করেন উক্ত বিদ্যালেয়ের প্রধান শিক্ষক মোঃ রফিকুল ইসলামের সভাপতিত্তে এ দোয়ার মাফিল আয়োজন করেন। সিরাজগঞ্জের কাজিপুরে সদ্য প্রয়াত সাবেক স্বাস্থ্যমন্ত্রী ও বর্ষীয়ান নেতা মোহাম্মদ নাসিম এমপি’র মৃত্যুতে গভীর শোক ও তার বিদেহী আত্মার শান্তি কামনা করেছে রতনকান্দির ইউনিয়ন আওয়ামী সহযোগী সংগঠের নৃএী বৃন্দ। হরিণা বাগবাটি উচ্চ বিদ্যালয়ে শনিবার বাদ আছর মহান নেতার বিদেহী আত্মার এই শাক্তি কামনা দোয়া করা হয়। এসময় উপস্তিত ছিলেন জেলা পরিষদের সদ্স্য গোলাম রব্বানী তালুকদার, রতনকান্দি ইউপি চেয়ারম্যান আনোয়ার হোসেন, ভারপ্রাপ্ত সভাপতি মোঃ সাইদুল ইসলাম জুরান, শাহা আলম মাষ্টার, বিপল্প হোসেন, দোয়া ও মোনাজাত করান মাওলানা হাজী সাইফুল ইসলাম, সদর থানা আওয়ামী সেচ্ছাসেবগলীগের সিনিয়ার সহ সভাপতি এইচ এম মিল্টন, ইউনিয়ন যুবলীগের সভাপতি মোঃ জাহাঙ্গীর আলম, সাধারণ সম্পাদক বুলবুল আহমেদ ভুট্টু, ইউনিয়ন স্বেচ্ছাসেবকলীগের ভারপ্রাপ্ত সভাপতি সোহেল রানা, ইউনিয়ন ছাত্রলীগের সভাপতি আঃ আলিম খাঁন , সাধারণ সম্পাদক জাকিরুল ইসলাম বাবু সহ ইউনিয়নের সকল ওয়ার্ডের সভাপতি, সাধারণ সম্পাদক সহ সকল অঙ্গ সংগঠনের নেতৃবৃন্দ । এ সময় তারা বলেন, মহান এই নেতার মৃত্যুতে আমরা সবাই মর্মাহত ও গভীর শোক প্রকাশ করছি যেন আল্লাহ আমাদের প্রিয় নেতাকে জান্নাত বাশী করেন। ছবি সহ


নাটোরে স্কুল ছাত্রীকে ধর্ষণ-চেষ্টার আসামী গ্রেফতার!

নাটোরে স্কুল ছাত্রীকে ধর্ষণ-চেষ্টার আসামী  গ্রেফতার!





রাজশাহী ব্যুরো
নাটোরের বড়াইগ্রামে ১০ বছর বয়সী পঞ্চম শ্রেনির জনৈক ছাত্রীকে ধর্ষণ-চেষ্টার আসামী আক্তার মন্ডলকে (৭০) গ্রেফতার করেছে পুলিশ। আক্তার মন্ডল উপজেলার জামাইদিঘী গ্রামের মৃত কাসেম মন্ডলের ছেলে। জনৈক ছাত্রীর পিতা রাহুল প্রামানিক শুক্রবার বিকেল সাড়ে ৫টার দিকে থানায় অভিযোগ দায়ের করার পর আসামী আক্তার মন্ডলকে গ্রেফতারের জন্য মাঠে নেমে পড়ে পুলিশ টিম। প্রথম দফায় জামাইদিঘী গ্রামে অভিযান চালিয়ে ব্যর্থ হয় পুলিশ। পুলিশের উপস্থিতিতে টের পেয়ে লৌহাগাড়ার বিলের পাট ক্ষেতে লুকিয়ে পড়ে সে। দ্বিতীয় দফায় শুক্রবার রাতে কয়েন গ্রামে অভিযান চালিয়ে তাকে গ্রেফতার করে পুলিশ। 
মেয়েটির বাবা জানান, পঞ্চম শ্রেনিতে পড়-য়া ১০ বছর বয়সী আমার মেয়ে ৮ দিন আগে রোববার বাড়ি থেকে মামার বাড়িতে বেড়াতে আসে। গত বুধবার দুপুরে মামা তার ৫ বছরের মেয়ের সাথে পাশের দোকান থেকে বিড়ি কিনে আনতে পাঠায়। শিশুটি আক্তার মন্ডলের দোকানে গেলে তাকে দোকানের ভিতরে নিয়ে গিয়ে খাটের উপর শুইয়ে ধর্ষণের চেষ্টা করে। শিশুটি চিৎকার দিলে, ভয়ে ছেড়ে দেয় আক্তার মন্ডল ।

বড়াইগ্রাম থানার ভারপ্রাপ্ত পুলিশ কর্মকর্তা দিলিপ কুমার দাস সংশ্লিষ্ট আসামীর গ্রেফতারের বিষয়টি নিশ্চিত করে বলেন, অসামী আক্তার মন্ডলকে শনিবার নাটোর জেল হাজতে প্রেরণ করা হয়েছে।

আশাশুনিতে জরিমানার পরিবর্তে মাস্ক প্রদান। জরিমানাই মুখ্য নয়, সচেতনতা জরুরি।

আশাশুনিতে জরিমানার পরিবর্তে মাস্ক প্রদান। জরিমানাই মুখ্য নয়, সচেতনতা জরুরি।





আহসান উল্লাহ বাবলু আশাশুনি ( সাতক্ষীরা) প্রতিনিধি: আশাশুনিতে জরিমানার পরিবর্তে মাক্স প্রদান ও জন্য সচেতনতা কার্যক্রম পআশাশুনিতে জরিমানার পরিবর্তে মাস্ক প্রদান।

জরিমানাই মুখ্য নয়, সচেতনতা জরুরি। 


আহসান উল্লাহ বাবলু উপজেলা  প্রতিনিধি:

আশাশুনিতে জরিমানার পরিবর্তে মাক্স প্রদান ও জন্য সচেতনতা কার্যক্রম পরিচালনা করা হয়েছে। উপজেলা নির্বাহী অফিসার মীর আলিফ রেজা শনিবার সন্ধ্যায় উপজেলার বড়দল ইউনিয়নের গোয়ালডাঙ্গা বাজারে এ মাক্স বিতরণ করেন। তিনি মাইকিং করে নির্দেশ প্রদান করেন আপনারা কেউ মাক্স বিহীন বাড়ি থেকে বের হবেন না। সবাই সামাজিক দূরত্ব বজায় রাখবেন। এছাড়া আগামীকাল থেকে মাক্স বিহীন বাড়ি থেকে বের হলে এবং কোন কারণ ছাড়া অযথা ঘুরাফেরা করলে মোবাইল কোর্টের মাধ্যমে জরিমানা করা হবে।করোনা ভাইরাস প্রতিরোধ ব্যবস্থায় সামাজিক দুরত্ব বজায় ও জারীকৃত নির্দেশনা বজায় সহকারী কমিশনার (ভূমি) ও এক্সিকিউটিভ ম্যাজিস্ট্রেট, দাগনভূঞা কতৃক অভিযান পরিচালনা করা হয়।  এ অভিযানে জারীকৃত নির্দেশনা অমান্য করে দাগনভূঞা উপজেলার দাগনভূঞা সদর, মাতুভূঞা, সিলোনিয়া ও জয়লস্কর বাজারে মাস্ক পরিধান না করা, জারীকৃত নির্দেশনা অমান্য করে দোকান খোলা রেখে ও সামাজিক দুরত্ব বজায় না রেখে গণজমায়েত করায়, একই যানবাহনে সামাজিক দূরত্ব বজায় না রেখে একাধিক যাত্রী উঠায়, সামাজিক দূরত্ব বজায় না রেখে কোন কারণ ছাড়া  অযথা ঘুরাঘুরি করায় বিভিন্ন ব্যক্তি ও দোকান মালিককে মোট পাঁচটি মামলায়  ৪২০০/- টাকা অর্থদণ্ড আরোপ করা হয়।অধিকন্তু জারীকৃত নির্দেশনা মেনে চলার,  মাস্ক পরিধানের, গণজমায়েত করে আড্ডা না দেওয়ার;  একই যানবাহনে একাধিক ব্যক্তি না উঠার এবং সামাজিক দূরত্ব  বজায় রাখার বিষয়ে জনসাধারণকে সচেতন করা হয়।ফ্রি মাস্ক বিতরণ ও জনসাধারণকে মাস্ক পড়া ও সামাজিক দুরত্ব বজায় রাখার জন্য সচেতনতা কার্যক্রম পরিচালনা করা হয়|
রিচালনা করা হয়েছে। উপজেলা নির্বাহী অফিসার মীর আলিফ রেজা শনিবার সন্ধ্যায় উপজেলার বড়দল ইউনিয়নের গোয়ালডাঙ্গা বাজারে এ মাক্স বিতরণ করেন। তিনি মাইকিং করে নির্দেশ প্রদান করেন আপনারা কেউ মাক্স বিহীন বাড়ি থেকে বের হবেন না। সবাই সামাজিক দূরত্ব বজায় রাখবেন। এছাড়া আগামীকাল থেকে মাক্স বিহীন বাড়ি থেকে বের হলে এবং কোন কারণ ছাড়া অযথা ঘুরাফেরা করলে মোবাইল কোর্টের মাধ্যমে জরিমানা করা হবে।করোনা ভাইরাস প্রতিরোধ ব্যবস্থায় সামাজিক দুরত্ব বজায় ও জারীকৃত নির্দেশনা বজায় সহকারী কমিশনার (ভূমি) ও এক্সিকিউটিভ ম্যাজিস্ট্রেট, দাগনভূঞা কতৃক অভিযান পরিচালনা করা হয়।  এ অভিযানে জারীকৃত নির্দেশনা অমান্য করে দাগনভূঞা উপজেলার দাগনভূঞা সদর, মাতুভূঞা, সিলোনিয়া ও জয়লস্কর বাজারে মাস্ক পরিধান না করা, জারীকৃত নির্দেশনা অমান্য করে দোকান খোলা রেখে ও সামাজিক দুরত্ব বজায় না রেখে গণজমায়েত করায়, একই যানবাহনে সামাজিক দূরত্ব বজায় না রেখে একাধিক যাত্রী উঠায়, সামাজিক দূরত্ব বজায় না রেখে কোন কারণ ছাড়া  অযথা ঘুরাঘুরি করায় বিভিন্ন ব্যক্তি ও দোকান মালিককে মোট পাঁচটি মামলায়  ৪২০০/- টাকা অর্থদণ্ড আরোপ করা হয়।অধিকন্তু জারীকৃত নির্দেশনা মেনে চলার,  মাস্ক পরিধানের, গণজমায়েত করে আড্ডা না দেওয়ার;  একই যানবাহনে একাধিক ব্যক্তি না উঠার এবং সামাজিক দূরত্ব  বজায় রাখার বিষয়ে জনসাধারণকে সচেতন করা হয়।ফ্রি মাস্ক বিতরণ ও জনসাধারণকে মাস্ক পড়া ও সামাজিক দুরত্ব বজায় রাখার জন্য সচেতনতা কার্যক্রম পরিচালনা করা হয়|

পানি উন্নয়ন বোর্ডের উদাসিনীতা, প্রতাপ নগর বাসীর দিন কাটছে চরম উদ্বিগ্নতায়!

 পানি উন্নয়ন বোর্ডের উদাসিনীতা, প্রতাপ নগর বাসীর দিন কাটছে চরম উদ্বিগ্নতায়!





আহসান উল্লাহ বাবলু  আশাশুনি,( সাতক্ষীরা) প্রতিনিধি : প্রতাপনগরে জ্বলোচ্ছ্বাস ঘুর্নিঝড় আম্ফান আগ্রাসনে বিধ্বস্ত প্লাবিত অবস্থার একমাস অতিবাহিত হতে চলেছে আজ। প্রবল জোয়ারের স্রোত ধারায় রিং বাধের সকল চেষ্টাই ব্যর্থ করে দিয়েছে প্রতাপনগর বাসীর। 
পানি উন্নয়ন বোর্ডের উদাসীনতার বহি প্রকাশ বল্লেন ভুক্তভোগী প্লাবিত এলাকাবাসী। আজ থেকে ঠিক একমাস পূর্বে ২০ মে মহা প্রলয়ঙ্কারী জ্বলোচ্ছ্বাস ঘুর্নিঝড় আম্ফান আঘাত হানে প্রতাপনগর, শ্রীউলা ইউনিয়নে তথা উপকুলীয় অঞ্চলের গাবুরা, পদ্মপুকুর, কাশিমাড়ি সহ আরো বেশ কয়েকটি ইউনিয়নে। 
আবহাওয়া অফিসের মাধ্যমে ঘুর্নিঝড় আম্ফানের পূর্বাভাস উপকুলীয় অঞ্চলে স্থানীয় প্রশাসন সহ বিভিন্ন ইলেকট্রনিক প্রিন্ট মিডিয়ার মাধ্যমে জানতে পারায় সর্ব সাধারণ মানুষ নিরাপদ আশ্রয়ে গ্রহণ করে। উল্লেখযোগ্য সংখ্যক হতাহতের ঘটনা না ঘটলেও, উপকুলীয় অঞ্চলের সর্বাধিক ক্ষতিগ্রস্ত প্রতাপনগরসহ বেশ কয়েকটি ইউনিয়ন লন্ডভন্ড করে দেয় ঘুর্নিঝড় আম্ফানে। 
জ্বলোচ্ছ্বাস ঘুর্নিঝড় আম্ফান প্লাবনে জোয়ার ভাটার লবনাক্ত পানিতে আজও তলিয়ে আছে মাইলের পর মাইল জনপদ। আজও খোলপেটুয়া-কপোতাক্ষের জোয়ার ভাটায় হাজার হাজার একর ফসলি জমি পরিনত হয়ে আছে কূল কিনারা হিন বহমান নদীতে। এ যেন সাগর নদী আর জনপদ মিলে মিশে একাকার হয়ে আছে আজও। 
যে দিকে চোখ যায় শুধু পানি আর পানি। ভেসে যেয়ে বিলিন হয়ে আছে শতশত মাছের ঘের। আজও ডুবে আছে কৃষকের সাধের সবুজ ফসল ভরা খেত খামার। স্কুল, মাদ্রাসা, মসজিদ, মন্দির, গবাদিপশু, খামারিদের সবই ভাসিয়ে দিয়ে নিঃশ্ব করে দিয়েই ক্ষান্ত হয়নি আম্ফান !  
আজও জোয়ার ভাটার সাথে তাল মিলিয়ে চলতে হচ্ছে ভুক্তভোগী প্লাবিত এ অঞ্চলের মানুষের। বাসগৃহ ভেঙ্গেছে শতশত পরিবারের। টোং বেঁধে এভাবে বসবাসের স্থায়ীত্ব আর কত দিনের কেবা জানে। পরিবারের আয়ের উৎস শেষ সম্বল মাছ ধরার নৌকায় বাসগৃহের অবসান ঘটবে বা কবে ? এলাকা ছেড়ে চলে গেছে কিছু কিছু পরিবার। আজও বাধ‍্য হয়ে আশ্রয় কেন্দ্রে থাকতে হচ্ছে অনেক পরিবারের। ত্রাণ ও খাদ্য সয়াতা আজও পর্যন্ত পায়নি অনেকেই ! সুষম স্বচ্ছতার বন্টন মনিটরিং না থাকায় ত্রাণ থেকে বঞ্চিত হচ্ছে বিভিন্ন ক্ষতিগ্রস্ত পরিবার। মানবেতর জীবনযাত্রার যেন শেষ নাই। দূরবিসহ বিপন্ন জীবন যাত্রার শেষ কবে হবে ? আম্ফানের পর থেকে হাজার হাজার বানভাসী সর্ব শ্রেনী পেশার মানুষেরা রিং বাঁধের মাধ্যমে প্লাবিত এলাকা জোয়ার ভাটার অবসান ঘটাতে জীবন বাজি রেখে চেষ্টা চালিয়েছে। 
শ্রীপুর-কুড়িকাহুনিয়ায় রিং বাঁধের মাধ্যমে প্লাবিত অবস্থার অবসানে সফল হলেও সেটি চার দিনের ব‍্যবধানে ভাগ্যের নির্মম পরিহাসে বিফলে চলে যায়। অত্র অঞ্চলটি আবারো প্লাবিত হয়ে একাকার হয়ে গেছে। জোয়ারের বহমান শা শা স্রোত ধারার শব্দে বয়ে চলেছে প্রতিটি জনপদে। 
এহেন পরিস্থিতিতে ক্ষতিগ্রস্ত সচেতন ভুক্তভোগীরা বলেন আমাদের ইউনিয়নের মানচিত্র শিমারেখা ও এ ইউনিয়নের মানুষের বসবাসের স্বার্থে নদী ভাঙ্গনের কবল থেকে রক্ষা করতে বেড়ীবাঁধ নির্মাণে কংক্রিট ব্লকের বিকল্প নাই। এবং চর এলাকায় বনায়ন কর্মসূচির বিকল্প নাই। তাই সেনাবাহিনীর মাধ্যমে টেঁকসই বেড়ীবাঁধ নির্মাণের জন্য মাননীয় প্রধানমন্ত্রীর তড়িৎ হস্তক্ষেপ ও কৃপা দৃষ্টি আকর্ষণ করছে ভুক্তভোগী প্লাবিত বানভাসী এলাকাবাসী।

কেশবপুরে ৩ দিনে ৯ ব্যক্তি করোনায় আক্রান্ত

কেশবপুরে ৩ দিনে ৯ ব্যক্তি করোনায় আক্রান্ত





মোরশেদ আলম
যশোর ভ্রাম্যমাণ প্রতিনিধি 

যশোর কেশবপুরে কোনভাবেই  থামানো  যাচ্ছেনা  করেনার বিস্তার,  মহামারি আকার ধারন করার আশংকা করছেন সচেতনমহল। দারোগা-পুলিশ,স্বাস্থ্যকর্মী সহ  গত ৩ দিনে ৯ ব্যক্তি করোনায় আক্রান্ত হয়েছে। শনাক্তের আগে আক্রান্ত ব্যক্তিদের অবাদ চলাফেরা ও মেলামেলার  পূর্ন তথ্য বের করা  খুব কঠিন কাজ, তাই অতি অল্প সময়ের মধ্যে কেশবপুর উপজেলাব্যাপী করোনা ভাইরাস মহামারীতে রুপ নিতে পারে। 

কেশবপুরে করোনা ভাইরাস  মহামারি আকার ধারন করার আগেই আক্রান্ত ব্যক্তিদের সংস্পর্ষে আসা ব্যক্তিদের  দ্রুত চিহ্নিত করে তাদেরকে পরিক্ষা-নিরিক্ষা ও করোন্টাইনের ব্যবস্থা গ্রহনের জন্য প্রশাসনের প্রতি জোর দাবি জানিয়েছেন করোনা আতংক কেশবপুরবাসী। 

বিশেষ করে পুলিশ অফিসার ও স্বাস্থ্যকর্মী করোনায় আক্রানের খবরে কেশবপুরবাসীর মনে করোনা আতংক বিরাজ করছে। একজন স্বাস্থ্যকর্মী ও প্রশাসনের দায়িত্বপ্রাপ্ত ব্যক্তিরা কর্তব্যের খাতিরে তাদের উধ্বার্তন কর্মকর্তাসহ   মানুষের সেবায় বিভিন্ন এলাকায়  অবাদ বিচারন এবং সংস্পর্ষে যেতে হয়। আক্রান্ত  ব্যক্তিরা অজ্ঞাত কারনে তাদের গতি-বিধির ব্যাপারে  প্রশাসনের কাছে অনেক কিছু গোপন রাখতে বাধ্য হয়। এটিও করোনা বৃদ্ধির একটি কারন হতে পারে।  
    
হাসপাতাল সূত্রে জানা গেছে,যশোর  বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়ের জিনোম সেন্টারে পাঠানো নমুনা পরিক্ষায় গত শনিবার কেশবপুর থানার একজন এবং  শহরের একই পরিবারের ৩সহ মোট ৪ ব্যক্তির শরীরে করোনায় পজেটিভ রিপোর্ট এসেছে। তারা হলেন,  কেশবপুর থানার কনেস্টেবল আলমগীর হোসেন, শহরের বালিয়াডাঙ্গা গ্রামের জ্যেতি প্রসাদ(৩০),তার স্ত্রী মিঠাই তরফদার  ও ননদ পুঁজা(২১)। এর আগে গত বৃহস্পতিবার কেশবপুর থানার এ.এস.আই তরিকুল, শহরের ১নং ওয়ার্ড সাহাপাড়ার  তুষার ও  ত্রিমোহিনী গ্রামের গৃহবধু জুলেখা এবং বুধবার মির্জানগর কমিউনিটি ক্লিনিকের সাবিনা ইয়াসমিন ও সাতবাড়িয়া গ্রামের স্বাস্থ্য সহকারীর স্বামী আব্দুল মান্নানের শরীরে করোনা ধরা পড়ে।

এব্যাপারে উপজেলা স্বাস্থ্য ও পরিবার-পরিকল্পনা  কর্মকর্তা আলমগীর হোসেন বলেন, প্রশাসনের সহযোতায়  আক্রান্ত ব্যক্তিদের সকলের বাড়ী লকডাউন ও আইশ্লোসনে রেখে চিকিৎসা সেবা দেওয়া হচ্ছে।

নাটোরে সড়ক দুর্ঘটনায় মোটরসাইকেল আরোহী নিহত!

নাটোরে সড়ক দুর্ঘটনায় মোটরসাইকেল আরোহী  নিহত!





রাজশাহী ব্যুরো
নাটোর-পাবনা মহাসড়কে  মোটরসাইকেল আরোহী খোরশেদ আালম (২৪) নিহত হয়েছে। দুর্ঘটনাটি ঘটে শনিবার বিকেল সাড়ে তিনটার দিকে নাটোরের লালপুর  উপজেলা  দাঁইড়পাড়াতে ।

 খোরশেদ আালম নাটোরের সিংড়া উপজেলার বড়িলা গ্রামের নেক মোহাম্মদের পুত্র। 
বনপাড়া হাইওয়ে থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা খন্দকার শফিকুল ইসলাম দুর্ঘটনা ও নিহতের বিষয়টি নিশ্চিত করে বলেন, ধানাইদহ গামী মোটরসাইকেলরোহী বিপরীতমুখী থেকে আসা নাটোরগামী পিকআপের সাথে সংঘর্ষ হয়। এতে ঘটনাস্থলে মৃত্যুহয়মোটরসাইকেলরোহীর। দুর্ঘটনায় জড়িত পিকআপ ও মোটরসাইকেল থানায় আটক রয়েছে। এ ব্যাপারে মামলা দায়েরের প্রক্রিয়া চলছে।

ঝিনাইদহে গৃহবধূ অপহরণ মামলায় যুবক গ্রেফতার, গৃহবধূ উদ্ধার

ঝিনাইদহে গৃহবধূ অপহরণ মামলায় যুবক গ্রেফতার, গৃহবধূ উদ্ধার





খোন্দকার আব্দুল্লাহ বাশার। ঝিনাইদহ জেলা প্রতিনিধি। 



ঝিনাইদহে অপহৃত গৃহবধুকে উদ্ধার ও অপহরণকারী যুবককে দিনাজপুর থেকে গ্রেফতার করেছে পুলিশ। এ ঘটনায় গৃহবধূর স্বামী রনী সাহা বাদী হয়ে ঝিনাইদহ সদর থানায় জুয়েল রায়কে আসামী করে একটি মামলা দায়ের করে। ঘটনাটি ঘটেছে ঝিনাইদহ শহরের চাকলাপাড়া এলাকায়।

মামলার বিবরণে জানা যায়, জেলা শহরের চাকলাপাড়া এলাকার তপন সাহার ছেলে রনী সাহা বিগত এক যুগ আগে সনাতন ধর্মীয় বিধি মোতাবেক মাগুরা জেলার শ্রীপুর উপজেলার রাধানগর গ্রামের এক নারীর সাথে বিয়ে হয়। তাদের সংসারে দুই সন্তানও রয়েছে। দিনাজপুর সদর উপজেলার সুন্দরবন গ্রামের প্রভাষ চন্দের ছেলে জুয়েল রায় (২১) বর্তমানে ঝিনাইদহ শহরের চাকলাপাড়া এলাকার ইস্কন মন্দিরে বসবাসরত এবং সে ঝিনাইদহ সরকারি কেসি কলেজের অনার্স ৩য় বর্ষে বোটানি ডিপার্টমেন্টে অধ্যয়নরত জুয়েল ইস্কন মন্দিরে যাওয়া আসার এক পর্যায়ে জুয়েল রায় ওই গৃহবধূকে প্রেমের ফাঁদে ফেলে গভীর সম্পর্ক গড়ে তোলে। এরই একপর্যায়ে তাকে বাড়িতে একা পেয়ে গত ১৪ জুন রোববার তাকে অপহরণ করে নিয়ে যায়। এ সময় বাদী রনী সাহার ঘরে থাকা ১৪ ভরি স্বর্ণালঙ্কার, নগদ ৬৫ হাজার টাকা হাতিয়ে নেয়।

গৃহবধূর স্বামী রনী সাহা আক্ষেপ করে বলেন, একযুগ ধরে সংসার করার পর স্বামী সন্তানের কথা ভুলে যেয়ে পরকীয়া প্রেমে জড়িয়ে পড়ে তার স্ত্রী। তিনি আরও অভিযোগ করে বলেন, ধর্মের নামে শিক্ষার কথা বলে শহরের চাকলা পাড়ায় অবস্থিত ইস্কন মন্দিরে থাকা কতিপয় যুবকেরা দীর্ঘদিন ধরে বিভিন্ন বয়সী নারীদেরকে সুকৌশলে ফুসলিয়ে তাদের ব্যবহার করে আসছিল। যেমনটি করেছে আমার স্ত্রীকে নিয়ে। এতে করে আমার একযুগ ধরে সাজানো সংসার ভেঙেচুরে চুরমার হয়ে গেছে।

এঘটনায় অপহৃত গৃহবধুর স্বামী রনী সাহা প্রেমিক জুয়েল রায়কে আসামী করে অপহরণ মামলা করে। এ ব্যাপারে মামলার তদন্তকারী কর্মকর্তা এস আই পলাসুর রহমান বলেন, থানায় এজাহারের পর আমি সঙ্গীয় ফোর্স নিয়ে দিনাজপুরে গিয়ে শুক্রবার আসামী জুয়েল রায়কে গ্রেফতার করতে সক্ষম হই এবং অপহৃত গৃহবধুকে উদ্ধার করি। শনিবার দুপুরে তাকে আদালতে প্রেরণ করি

নাগরপুরে বিশ্ব পরিবেশ দিবস উপলক্ষে "দৈনিক কপোতাক্ষ নিউজের উদ্যোগে বৃক্ষরোপন কর্মসূচি পালিত

নাগরপুরে বিশ্ব পরিবেশ দিবস উপলক্ষে "দৈনিক কপোতাক্ষ নিউজের উদ্যোগে বৃক্ষরোপন কর্মসূচি পালিত





কপোতাক্ষ নিউজ ডেস্ক : বিশ্ব পরিবেশ দিবস ২০২০ উপলক্ষে  জনপ্রিয় অনলাইন পোর্টাল "দৈনিক কপোতাক্ষ নিউজ উদ্যোগে টাংগাইল জেলা প্রতিনিধি ডা.এম.এ.মান্নান এর সভাপতিত্বে ও নাগরপুর উপজেলা প্রতিনিধি শিক্ষানবীস সাহসী  সাংবাদিক সজিব হুসাইন মোহাম্মদ হাসান এর পরিচালনায় এবং দৈনিক কপোতাক্ষ নিউজের সম্পাদক ও প্রকাশক জ্বনাব প্রভাষক মোহাম্মদ মহসীন আলী স্যারের পরামর্শে ও দিকনির্দেশনায় টাংগাইলের নাগরপুরে পালিত হল বৃক্ষরোপন কর্মসৃচী। 

আজ শনিবার ২০ জুন ২০২০ খ্রি.বিকাল ৫.৩০ মিনিটে দুয়াজানী কলেজ পাড়া জামে মসজিদ মাঠে দৈনিক কপোতাক্ষ নিউজের উদ্যোগে বৃক্ষরোপন কর্মসৃচী পালন করা হয়েছে। 

বৃক্ষরোপন কর্মসৃচী রোপন কালে টাংগাইল জেলা প্রতিনিধি ডা.এম.এ.মান্নান বলেন,জনপ্রিয় নিউজ পোর্টাল "দৈনিক কপোতাক্ষ নিউজ পত্রিকাটি একটি দৈনিক সংবাদ প্রকাশ করার নামই নয় বরং দৈনিক কপোতাক্ষ নিউজটি একটি জনকল্যাণ ও মানবতাবাদী সামাজিক সংগঠনের নাম।দৈনিক কপোতাক্ষ নিউজটি প্রতিষ্ঠালগ্নে থেকে দেশের মাটি ও মানুষের জন্য নিরলসভাবে কাজ করে যাচ্ছে তারই প্রমান আজকের বৃক্ষরোপন কর্মসৃচী।পরিবেশ ও প্রাকৃতিক সুন্দর্যের অবক্ষয় রোধে বৃক্ষরোপন কর্মসূচী কার্যক্রম অব্যাহত থাকবে ইনশাআল্লাহ।

নাগরপুর উপজেলা প্রতিনিধি সজিব হুসাইন মোহাম্মদ হাসান বলেন-দৈনিক কপোতাক্ষ নিউজ অনলাইন পোর্টাল টি সত্যর প্রকাশে অবিচল প্রতিপ্রাদ্যটি মনের ভিতর ধারন করে আমরা দৈনিক কপোতাক্ষ নিউজটি দেশ ও দেশের মানুষের উন্নয়নে কাজ করে যাচ্ছি।বৃক্ষরোপন কর্মসৃচী একটি ইবাদত,একটি সামাজিক কাজ।       

 নাগরপুরে বৃক্ষরোপন কর্মসৃচী বিষয়ে দৈনিক কপোতাক্ষ নিউজ পরিবারের চেয়ারম্যান,প্রকাশক ও সম্পাদক জ্বনাব প্রভাষক মোহাম্মদ মহসীন আলী বলেন,দৈনিক কপোতাক্ষ নিউজের উদ্যোগে টাংগাইল জেলা ও নাগরপুর উপজেলা প্রতিনিধির সার্বিক সহযোগিতায় আজকে বৃক্ষরোপন কর্মসৃচী পালন করা হইলো। আমি ডা.এম.এ.মান্নান ও হাসান সাদীকে অান্তরিক ধন্যবাদ জানাচ্ছি। তিনি আরও বলেন,বৃক্ষের ওপর প্রত্যক্ষ-পরোক্ষভাবে আমরা নির্ভরশীল। পরিবেশের ভারসাম্য রক্ষায় বৃক্ষ অগ্রণী ভূমিকা পালন করে। তাই পৃথিবীর ওপর আমাদের অস্তিত্ব রক্ষায়  আমাদের বেশি বেশি বৃক্ষ রোপণ করতে হবে। 

বৃক্ষরোপন কর্মসৃচীতে আরও উপস্হিত ছিলেন,দুয়াজানী কলেজ পাড়া জামে মসজিদের পেশ ইমাম জ্বনাব মাওলানা মাসুম বিল্লাহ, দুয়াজানী কলেজ পাড়া ছাত্রকল্যাণ পরিষদের পাঠাগার সম্পাদক মো.শুকুর মাহমুদ সহ অন্যান্য সমাজকর্মী বৃন্দ।

মেহেরপুরের শিশু বিষয়ক কর্মকর্তার বিরুদ্ধে, ঝিনাইদহে ভাবিকে মারধর ও শ্লিলতাহানীর অভিযোগে মামলা

মেহেরপুরের শিশু বিষয়ক কর্মকর্তার বিরুদ্ধে, ঝিনাইদহে  ভাবিকে মারধর ও শ্লিলতাহানীর অভিযোগে মামলা




খোন্দকার আব্দুল্লাহ বাশার। 
ঝিনাইদহ জেলা প্রতিনিধি। 


মেহেরপুরের শিশু বিষয়ক কর্মকর্তা গোলাম সিদ্দিকীর বিরুদ্ধে ঝিনাইদহ সদর থানায় ভাবিকে মারধর ও শ্লিলতাহানী করার অভিযোগে মামলা হয়েছে। আসামী গোলাম সিদ্দিকী ঝিনাইদহ পৌরসভার বড় খাজুরা গ্রামের মৃত ছাদেক আলী মন্ডলের ছেলে। তিনি বর্তমান মেহেরপুরে শিশু বিষয়ক কর্মকর্তা হিসেবে কর্মরত আছেন। ঝিনাইদহ সদর থানায় রেকর্ডকৃত মামলার (মামলা নং ২১) এজাহারে বাদী খাজুরা মাঝেরপাড়া গ্রামের খসরু হোসেনের স্ত্রী তহমিনা খাতুন অভিযোগ করেন গত ১৫ জুন তার দেবর রোকন আলী মন্ডল ইন্তেকাল করেন। ওই দিন নামাজে জানাযা পড়ান তার পোতা ছেলে হাফেজ রাওফুল ইসলাম রাব্বি। দাফন শেষে আসামী গোলাম সিদ্দিকী লোকজনের সামনে উত্তেজিত হয়ে কেন তার ভাইয়ের জানাযা হাফেজ রাব্বি পড়ালো এ নিয়ে হৈচৈ শুরু করেন। ঘটনাস্থলে উপস্থিত রাব্বির পিতা মুক্তার হোসেন মুক্তোর সাথে এ নিয়ে বাক বিতন্ডায় লিপ্ত হয়। এক পর্যায়ে বাঁশের লাঠি দিয়ে গোলাম সিদ্দিকী বাদীসহ তার পোতা ছেলে হাফেজ রাব্বি ও পুত্রবধু সালমা খাতুনকে মারধর করে। আহত হয়ে তারা হাসপাতালে ভর্তি হন। মারধর করেই ক্ষ্যান্ত হয়নি আসামী গোলাম সিদ্দিকী। এ সময় বাদীর কাপড় খুলে বেআবরু করে শ্লিলতাহানী ঘটায়। এ ঘটনায় ঝিনাইদহ সদর থানায় গত ১৬ জুন দুই পক্ষ পাল্টাপাল্টি মামলা দায়ের করেন। মামলার তদন্ত কর্মকর্তা ঝিনাইদহ সদর থানার এসআই হাফিজুর রহমান ঘটনার সত্যতা স্বীকার করে জানান, আসামীর বড় ভাবি মামলাটি করেছেন। তারা সম্পর্কে দেবর ভাবি। এটা একটি পারিবারিক বিরোধ। তিনি জানান আসামী গোলাম সিদ্দিকী ঘটনার পর থেকেই পলাতক। তাকে গ্রেফতারের চেষ্টা চলছে। এ ব্যাপারে গোলাম সিদ্দিকীর বক্তব্য জানতে তার মুঠোফোনে ফোন করা হলে তার মোবাইলটি বন্ধ পাওয়া যায়।

দৈনিক কপোতক্ষ নিউজ এর ঝিনাইদহ জেলা প্রতিনিধির ফেসবুক আইডি হ্যাক হয়েছে

দৈনিক কপোতক্ষ নিউজ এর ঝিনাইদহ জেলা প্রতিনিধির ফেসবুক আইডি হ্যাক হয়েছে




সম্রাট হোসেনঃ 
দৈনিক কপোতক্ষ নিউজ এর ঝিনাইদহ জেলা প্রতিনিধি খোন্দকার আব্দুলাহ বাসার এর ফেসবুক আইডি হ্যাক করা হয়েছে। এমতাবস্থায উল্লেখিত আইডি থেকে কেও যদি কোন রকম টাকা পয়সা চাই বা কোন নিউজ প্রচার করে এর জন্য খোঃ আব্দুল্লাহ বাসার কোন দায়ী থাকবে না৷  সবাই কে ওই আইডি থেকে সাবধান থাকার জন্য অনুরোধ করা হল। 

কুয়েতে করোনা ভাইরাসে আজ নতুন আক্রান্ত ৪৬৭ জন মৃত্যু ৬ জন

কুয়েতে করোনা ভাইরাসে আজ নতুন আক্রান্ত ৪৬৭ জন মৃত্যু ৬ জন




দাইয়ানুর রহমান মিষ্টারনুরঃ

কুয়েতের স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয়ের তথ্য মতে, আজ করোনা ভাইরাসে আরো ৪৬৭ জন নতুন করে আক্রান্ত হয়েছেন বলে শনাক্ত করা হয়েছে।
এ পর্যন্ত কুয়েতে করোনা ভাইরাসে আক্রান্তের সংখ্যা বেড়ে দাঁড়িয়েছে ৩৯১৪৫ জনে, চিকিৎসাধীন  ৮১০০ জন, গত ২৪ ঘন্টায় সুস্থতা লাভ করেছেন ৫৩৬, মোট সুস্থতা লাভ করেছেন ৩০৭২৬ জন ও বর্তমানে সংকটপূর্ণ অবস্থা ১৯৩ জন।

আজ নতুন করে ৬ জনের মৃত্যু হয়েছে।
এনিয়ে মোট মৃত্যু হয়েছে ৩১৯ জনের। 

গত ২৪ ঘন্টায় করোনায় আক্রান্ত বিভিন্ন দেশের নাগরিক।
স্থানীয় নাগরিক- ২৬৮ জন
বিভিন্ন দেশের নাগরিক- ১৯৯ জন

কুয়েতের ৫ প্রদেশে আক্রান্তদের সংখ্যা।
ফারওয়ানিয়া - ১১২ জন
আহমদি - ১০৯ জন
হাওয়াল্লী - ৭০ জন
জাহরা - ১২৩ জন
রাজধানী শহর - ৫৩ জন

এদিখে আবাসিক এলাকায় সর্বোচ্চ আক্রান্ত।
আল নাছেম - ২১ জন
ফারওয়ানিয়া- ৩৮ জন
সাবাহ আল সালেম- ১৬ জন
তাইমা- ১৯ জন
সাদ আল আব্দুল্লা- ১৭ জন
জাবের আল আলি- ১৭ জন

এছাড়াও দেশটির তিনটি জায়গায় যথাক্রমে, জওয়ান রেসর্ট,খাইরান রেসর্ট ও আল-কুত বিচ্ হোটেলসহ আরো বেশ কয়েকটি ক্যাম্পে স্থানীয় ও প্রবাসী নাগরিকদের কোয়ারেন্টাইনে রাখা হয়েছে।

বর্তমানে কুয়েতে ''জরুরী অবস্থা'' চলছে।
সামাজিক দূরত্ব বজায় রেখে চলাফেরা করতে নির্দেশ এবং খুব বেশি প্রয়োজন ব্যতীত ঘরের বাইরে বের হওয়া থেকে বিরত থাকতে নিষেধ করেছে দেশটির স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয়।

কুয়েতের সর্বত্রে (৩১ মে থেকে তিন সপ্তাহ) সন্ধ্যা ৬ টা থেকে সকাল ৬ টা পর্যন্ত ( ১২ ঘণ্টার কারফিউ)
উল্লেখ্য,  মহামারী করোনাভাইরাসের সংক্রমণ ঠেকাতে কুয়েতের সর্বত্রে চলছে লকডাউন ও কারফিউ।

দেখা যাচ্ছে অন্যদিকে মাহবুলা,জিলিব,ফারওয়ানিয়া, খাইতান ও হাওয়াল্লী এলাকায় টোটাল লকডাউন।
তবে টোটাল লকডাউন এলাকার কিছু সংখ্যক স্ট্রিট ও ব্লককে এর আওতার বাইরে রাখা হয়েছে। 

টোটাল লকডাউন এর আওতার বাইরে নিম্নের ব্লক ও স্ট্রিট গুলো।
ফারওয়ানিয়া, স্ট্রিট নং- ৬০.১২০.৫২০ ও ১২৯।
খাইতান, ব্লক নং- ৪.৬.৭.৮ ও ৯

সূত্রঃ আরব টাইমস

নাটোরে যুবকের মরাদেহ উদ্ধার

নাটোরে যুবকের মরাদেহ উদ্ধার




 রাজশাহী ব্যুরো
নাটোর বড়াইগ্রামের নওদা জোয়ারী গ্রামে জুয়েল রানা নামে এক যুবকের মরাদেহ উদ্ধার করেছে পুলিশ জুয়েল একই গ্রামের দুলাল ওরফে ভোলার ছেলে।
এলাকাবাসী ও স্থানীয় ইউপি সদস্য জমসেদ আলী জানান , করোনার সংকটকালীন সময়ে আয় রোজগার কমে যাওয়ায় মানসিক সমস্যায় ভুগছিলেন জুয়েল।


আজ শনিবার সকালে সাংসারিক অশান্তি থেকে সবার অলক্ষে ঘরের ভেতরে গলায় গামছা পেছিয়ে আত্মহত্যা করে সে। পরে বাড়ির লোকজন তাকে ঝুলতে দেখে পুলিশকে খবর দেয়। পুলিশ ঘটনাস্থলে গিয়ে মরদেহ উদ্ধার করে থানায় নিয়ে যায়।
এ ব্যাপারে বড়াইগ্রাম থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) দিলীপ কুমার দাস বলেন , পুলিশ পাঠানো হয়েছে তদন্ত করে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা নেয়া হবে।

নারায়ণগঞ্জের সোনারগাঁয়ের কৃতি সন্তান এসপি আক্তার হোসেন ঢাকা রেঞ্জ অফিসের পুলিশ সুপার হিসেবে দ্বায়িত্ব পেয়েছেন

নারায়ণগঞ্জের সোনারগাঁয়ের কৃতি সন্তান এসপি আক্তার হোসেন ঢাকা রেঞ্জ অফিসের পুলিশ সুপার হিসেবে দ্বায়িত্ব পেয়েছেন
  



 নিউজ ডেস্কঃ  

নারায়ণগঞ্জের সোনারগাঁয়ের কৃতি সন্তান এসপি আক্তার হোসেন ঢাকা রেঞ্জ অফিসের পুলিশ সুপার হিসেবে দ্বায়িত্ব পেয়েছেন।
নারায়ণগঞ্জ-৩(সোনারগাঁও) আসনের সংসদ সদস্য লিয়াকত হোসেন খোকা।সেই সাথে তার সুস্বাস্থ্য ও উত্তোরোত্তর সফলতা কামনা করে মাননীয় প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার প্রতি কৃতজ্ঞতা প্রকাশ করেছেন। এছাড়াও স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী সহ সংশ্লিষ্ট সকলকে ধন্যবাদ জ্ঞাপন করেছেন।সোনারগাঁওয়ের সন্তান এসপি আক্তার হোসেন (বিপিএম) বাংলার প্রাচীন রাজধানীখ্যাত নারায়ণগঞ্জের সোনারগাঁ উপজেলার পিরোজপুর ইউনিয়নের ভাটিবন্দ গ্রামের সন্তান। তিনি চাকুরী জীবনে সিলেট মেট্টোপলিটন পুলিশ, পুলিশ হেডর্কোয়াটাস,ফরিদপুর,অতিঃআইজিপি (প্রশাসন)-এর ষ্টাফ অফিসার এবং পরবর্তীতে বাংলাদেশ পুলিশের মহা-পুলিশ পরিদর্শক (আইজিপি) মহোদয়ের ষ্টাফ অফিসার হিসেবে ২০১৫-২০১৮ সাল পর্যন্ত প্রায় ৩ বছর ১ মাস সফলতার সাথে দায়িত্ব পালন করেন এবং তার কাজের স্বীকৃতি স্বরূপ ২০১৫, ২০১৬ এবং ২০১৮ সালে Inspector General of Police Exemplary Good Service Badge Award লাভ করেন এবং ২০১৭ সালে বাংলাদেশ পুলিশের সর্বোচ্চ পদক Bangladesh Police Medal (BPM) এ ভূষিত হন।এসপি আক্তার হোসেন বলেন, মহান আল্লাহর অশেষ রহমতে পুলিশ সুপার (এসপি), ঢাকা রেঞ্জ অফিস, ঢাকা পদে পদন্নোতি পেলাম । আমি কৃতজ্ঞ মাননীয় প্রধানমন্ত্রী, মাননীয় স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী, সম্মানিত সিনিয়র সচিব, স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয়, শ্রদ্ধেয় ইন্সপেক্টর জেনারেল অফ পুলিশ এবং অন্যান্য উচ্চ কর্মকর্তাদের প্রতি যারা এই পোস্টিং অর্ডার সত্য হওয়ার জন্য সর্বোচ্চ প্রচেষ্টা উৎসর্গ করেছেন।

নওগাঁর পোরশায় পুকুরের পানিতে ডুবে এক শিশুর মৃত্যু

নওগাঁর পোরশায় পুকুরের পানিতে ডুবে এক শিশুর মৃত্যু



রাজশাহী ব্যুরো
গতকাল শুক্রবার বিকেলে নওগাঁর পোরশায় পুকুরের পানিতে ডুবে রাফিয়া খাতুন নামে দেড় বছর বয়সের এক শিশুর মর্মান্তিক মৃত্যু হয়েছে। সে উপজেলা সদরের নিতপুর দুয়ারপাল গ্রামের শহীদুল ইসলামের মেয়ে।
নিহতের পারিবারিক সূত্র জানায়, বিকেলে রাফিয়া খেলতে গিয়ে সকলের অজান্তে বাড়ির পার্শ্ববর্তী পুকুরের পানিতে পড়ে ডুবে যায়। বাড়ীর লোকজন তাকে চারদিকে খুঁজা খুঁজী করতে থাকলে সন্ধ্যায় তার লাশ পুকুরে পানিতে ভেঁসে ওঠে।তার মৃত্যুতে এলাকায় শোকের ছায়া নেমে আসে। 

বাগমারার হাট খুজিপুর উচ্চ বিদ্যালয়ে বিদায় অনুষ্ঠিত

বাগমারার হাট খুজিপুর উচ্চ বিদ্যালয়ে বিদায় অনুষ্ঠিত




রাজশাহী ব্যুরোঃ  
রাজশাহী বাগমারা উপজেলা হাট খুজিপুর উচ্চ বিদ্যালয়ের সিনিয়র সহকারী শিক্ষক -মোহাম্মদ ইয়াদ আলী অবসর জনিত কারণে বিদায় সংবর্ধনা অনুষ্ঠিত হয়েছে।করোনা জনিত কারণে ঘরোয়াভাবে শুধুমাত্র অফিসকক্ষে অত্র বিদ্যালয়ের সম্মানিত প্রধান শিক্ষকসহ অন্যান্য শিক্ষক-কর্মচারী ও ম্যানেজিং কমিটির সদস্যদের দ্বারা বিদায় অনুষ্ঠানটি সফলভাবে সম্পন্ন করা হয়েছে ।
উক্ত অনুষ্ঠানে উপস্থিত ছিলেন ম্যানেজিং কমিটির সদস্য মোহাম্মদ আনোয়ারুল ইসলাম, মোঃ আমজাদ হোসেন ,শিক্ষক প্রতিনিধি মোঃ রফিকুল ইসলাম সাজু ও মোঃ খোয়াজ উদ্দিন, বিলকিস আরা সহ অন্যান্য সদস্যবৃন্দ ।
অত্র বিদ্যালয়ের সহকারী শিক্ষক মোঃ সিরাজুল ইসলামের সঞ্চালনায় অনুষ্ঠানে স্মৃতিচারণমূলক বক্তব্য প্রদান করেন বিদ্যালয়ের কর্মচারী মোঃ মতিউর রহমান, আলমগীর হোসেন শিক্ষকদের মধ্যে বক্তব্য রাখেন সুফিয়া খানম , বিলকিস আরা, মনোতোষ কুমার, মোঃ খোয়াজ উদ্দিন, রফিকুল ইসলাম সাজু নীরেন্দ্রনাথ , আব্দুল মালেক, ইসাহাক আলী,আবু সাঈদ মোহাম্মদ , সিরাজুল ইসলাম সহ, প্রধান শিক্ষক ,টি এম আলী আক্কাস।
উল্লেখ্য যে বিদায়ী শিক্ষক মোহাম্মদ ইয়াদ আলী স্যার ০১/০১/৭৯ থেকে আজ পর্যন্ত অত্যন্ত নিষ্ঠা ও কৃতজ্ঞতার সাথে অত্র বিদ্যালয়ের গণিতের শিক্ষক হিসেবে সুনামের সাথে চাকরি করেন।
সকলের স্মৃতিচারণ মূলক বক্তব্যে অনুষ্ঠানটি একটি বেদনাদায়ক অনুষ্ঠানে পরিণত হয়।বিদায় শিক্ষক মোহাম্মদ ইয়াদ আলী স্যারের বক্তব্য রাখার সময় এক আবেগঘন পরিবেশের সৃষ্টি হয় এবং সবাই সকলের দীর্ঘায়ু কামনা করেন এবং সকলের কাছে ক্ষমা প্রার্থনা করেন।পরিশেষে মহান আল্লাহর কাছে সবার জীবনে দীর্ঘায়ু কামনা করে বিশেষ মোনাজাত এর মাধ্যমে অনুষ্ঠানটি শেষ হয়।

অভয়নগর করোনা মোকাবেলায় স্বেচ্ছাসেবক টিমের ৮০দিন অতিবাহিত করল ছাত্রলীগ

অভয়নগর  করোনা মোকাবেলায় স্বেচ্ছাসেবক টিমের ৮০দিন অতিবাহিত করল ছাত্রলীগ





মোঃ দেলোয়ার হোসেন, অভয়নগর (যশোর) প্রতিনিধি : 

করোনা মোকাবেলায় অভয়নগরে ছাত্রলীগের স্বেচ্ছাসেবক টিমের কার্যক্রম ৮০দিন অতিবাহিত করল। অভয়নগর উপজেলা ছাত্রলীগের আহবায়ক শাহ খালিদ মামুনের নেতৃত্বে  স্বেচ্ছাসেবক টিমে কাজ করে চলেছেন নওয়াপাড়া পৌর ছাত্রলীগের সাধারণ সম্পাদক সাব্বির আহমেদ শান্ত, ৪নং ওয়ার্ড ছাত্রলীগের সাধারন সম্পাদক এমএ ওয়াদুদ, কলেজ ছাত্রলীগের যুগ্ম আহবায়ক আলামিন রাজ ও সাকিব হোসেন, ৪ নং ওয়ার্ড সাংগঠনিক সম্পাদক রাকিব সরদার ছাত্রলীগ নেতা আব্দুল আল মামুন আকাশ, শরিফুল হোসেন, এহসান হাবিব, মিনহাজুর রহমান, মো মুরাদ, আলামিন হোসেন, ইমন প্রমুখ। করোনা ভাইরাস মোকাবেলায়  ৮০তম দিনেও থেমে নেই ছাত্রলীগের কার্যক্রম। প্রতিদিনের ন্যায় নওয়াপাড়ার বিভিন্ন এলাকায় ছাত্রলীগের স্বেচ্ছাসেবক টিম জনগণের মধ্যে সচেতনতা সৃষ্টিতে প্রচার কার্যক্রম চালিয়ে যাচ্ছেন । দেশের যে কোন মহামারি পরিস্থিতিতে  অভয়নগর উপজেলা ছাত্রলীগ, নওয়াপাড়া পৌর ছাত্রলীগ ও কলেজ ছাত্রলীগের  স্বেচ্ছাসেবক টিম সর্বদা  প্রস্তুত রয়েছে মানুষের সেবাদানের জন্য একথা জানিয়েছে অভয়নগর উপজেলা ছাত্রলীগের আহবায়ক শাহ খালিদ মামুন।

অভয়নগরে সোনালী ব্যাংক ম্যানেজারসহ করোনায় মোট আক্রান্তের সংখ্যা দাঁড়িয়েছে ১০৩।

অভয়নগরে সোনালী ব্যাংক ম্যানেজারসহ করোনায় মোট আক্রান্তের সংখ্যা দাঁড়িয়েছে ১০৩।





মোঃ দেলোয়ার হোসেন, অভয়নগর (যশোর) প্রতিনিধি : 

যশোরের অভয়নগরে সোনালী ব্যাংক নওয়াপাড়া শাখার ম্যানেজার শামছুদ্দীন শামীমসহ নতুন করে ১৫জন করোনায় আক্রান্ত হয়েছেন। সব মিলিয়ে উপজেলায় করোনা আক্রান্ত রোগীর সংখ্যা দাঁড়িয়েছে ১০৩জনে। তাছাড়া করোনা উপসর্গ নিয়ে মারা যাওয়া নওয়াপাড়ার ব্যবসায়ী হাজী আনিসুর রহমানের নমুনায় মিলেছে করোনা পজিটিভ। শনিবার (২০জুন) দুপুরে অভয়নগর উপজেলা স্বাস্থ্য বিভাগ বিষয়টি নিশ্চিত করেছে। সব মিলিয়ে এ উপজেলায় করোনা আক্রান্ত রোগীর সংখ্যা দাঁড়িয়েছে ১০৩জনে। এর মধ্যে করোনার ছোবলে মারা গেছেন ২জন। করোনাকে জয় করে বাড়িতে ফিরেছেন ১০জন। বাকিরা বিভিন্ন হাসপাতাল ও বাড়িতে চিকিৎসাধীন রয়েছেন। অভয়নগর উপজেলা স্বাস্থ্য ও পরিবার পরিকল্পনা কার্যালয়ের করোনা ইউনিটের দায়িত্বপ্রাপ্ত চিকিৎসক ডা. আহম্মেদ ফয়সাল পাভেল জানান, উপজেলায় বসবাসরত জনগণ সরকারি স্বাস্থ্যবিধি না মানায় দিনদিন বেড়েই চলেছে করোনা আক্রান্ত রোগীদের সংখ্যা। উপজেলার সহকারী কমিশনার (ভূমি) কেএম রফিকুল ইসলাম জানান, উপজেলায় করোনা সংক্রমণ এলাকাকে রেডজোন হিসেবে চিহ্নিত করে লকডাউন ঘোষণা করা হয়েছে। করোনারোধকল্পে এ উপজেলায় বসবাসরত জনগণকে আরও সচেতন হয়ে স্বাস্থ্যবিধি মেনে চলতে হবে।

অভয়নগরে ট্রাক ও ইজিবাইক সংঘর্ষে ২ আরোহী নিহত, আহত-১

অভয়নগরে ট্রাক ও  ইজিবাইক সংঘর্ষে ২ আরোহী নিহত, আহত-১





মোঃ দেলোয়ার হোসেন, অভয়নগর (যশোর) প্রতিনিধি : 

যশোরের অভয়নগরের নওয়াপাড়ায় যশোর-খুলনা মহাসড়কে বালি বোঝাই ট্রাকের চাপায় ঘটনাস্থলে ইজিবাইকে থাকা ২জন যাত্রী নিহত হয়েছেন। আহত হয়েছেন অপর-১জন। ট্রাকের চাপায় ইজিবাইকটি দুমড়ে মুচড়ে যায়। শনিবার (২০জুন) সকাল ৬টার সময় যশোর-খুলনা মহাসড়কের নওয়াপাড়া পীরবাড়ি সংলগ্ন এলাকায় এ দূর্ঘটনা ঘটে। পুলিশসূত্রে জানা যায়, বালি বোঝাই একটি ট্রাক (ঝিনাইদহ ট-১১-০১৫৬) মহাসড়কে ওঠার সময় যাত্রীবাহি একটি ইজিবাইকে চাপা দেয়। এসময় ঘটনাস্থলে ইজিবাইকে থাকা উপজেলার সাভারপাড়া গ্রামের দবির বিশ্বাসের ছেলে মনিরুল বিশ্বাস (৪৫) ও ফুলতলা উপজেলার খানজাহান আলী এলাকার আবদুল মালেকের ছেলে মিজানুর রহমান (৫৫) নিহত হন। অপরদিকে গুরুতর আহত হন ফুলতলা উপজেলার জুগ্নিপাশা গ্রামের ইমামুল শেখ (১৮)। আহত ইমামুলকে অভয়নগর উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ভর্তি করা হয়েছে। নওয়াপাড়া হাইওয়ে থানার ওসি মো. শাহাবুদ্দিন চৌধুরী জানান, নিহত দুজনের লাশ এবং ঘাতক ট্রাকটিকে আটক করা হয়েছে।

মাধবপুর উপজেলা পরিষদের পক্ষ হতে শিশু খাদ্য ও ইউপি চেয়ারম্যান,কর্মকর্তাদের পিপিই বিতরণ,

মাধবপুর উপজেলা পরিষদের পক্ষ হতে শিশু খাদ্য ও  ইউপি  চেয়ারম্যান,কর্মকর্তাদের পিপিই  বিতরণ,




লিটন পাঠান হবিগঞ্জ জেলা প্রতিনিধি

হবিগঞ্জের মাধবপুর উপজেলা পরিষদের বরাদ্দ হতে করোনা ভাইসের কারণে ক্ষতিগ্রস্ত পরিবারের  ৫৫০জন শিশুর মধ্যে  শিশু খাদ্য বিতরণ  কার্যক্রম শুরু করেছে (২০-জুন) শনিবার দুপুরে উপজেলা রেস্ট হাউজের মাঠে   সামাজিক দুরত্ব বজায় রেখে  উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা তাসনুভা নাসতারান, 

পৌর এলাকার ২৫ জন শিশুর মধ্যে খাদ্য বিতরণ করেন।তাদের  মায়েরা শিশু খাদ্য গ্রহন করেন। এসময় সহকারী কমিশনার ভুমি আয়েশা আক্তার,উপজেলা মহিলা বিষয়ক কর্মকর্তা  জান্নাত সুলতানা, উপজেলা চেয়াম্যানের সি এ নাহিদুল ইসলাম উপস্থিত ছিলেন পর্যায়ক্রমে,

প্রতিটি ইউনিয়নে শিশু খাদ্য বিতরণ করা হবে।খাদ্যের মধ্যে ছিল প্যাকেটজাত গুড়ো দুধ,সুজি,ও চিনি। উপজেলা পরিষদের পক্ষ হতে আরও জানান  ইউ পি চেয়ারম্যান ও  উপজেলায় কর্মরতও,

 করোনায় সেবায় নিয়োজিত কর্মকর্তা, কর্মচারীদের ব্যক্তিগত সুরক্ষা সামগ্রী পিপিই প্রদান  করা হয়েছে।

ইলেকট্রনিক ডাটা ট্রাকিং সহ জনসংখ্যা ভিত্তিক জরায়ু - মুখ ও স্তন ক্যান্সার স্ক্রিনিং কর্মসূচি

ইলেকট্রনিক ডাটা ট্রাকিং সহ জনসংখ্যা ভিত্তিক জরায়ু - মুখ ও স্তন ক্যান্সার স্ক্রিনিং কর্মসূচি





আহসান  উল্লাহ  বাবলু, আশাশুনি,( সাতক্ষীরা) প্রতিনিধিঃ আশাশুনি উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ইলেকট্রনিক ডাটা ট্রাকিং সহ জনসংখ্যা ভিত্তিক জরায়ু - মুখ ও স্তন ক্যান্সার স্ক্রিনিং কর্মসূচির উপর রেজিষ্ট্রেশন এবং রেফারাল ব্যবস্হাপনার প্রশিক্ষণ আজ সকাল ১০ টায় উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সের হলরুমে ৩ ব্যাচের সমন্বয়ে ৩ দিন ব্যাপী প্রশিক্ষণ কর্মশালার  উদ্বোধন সহ  ১ ম ব্যাচের প্রশিক্ষণ সম্পন্ন পূর্বক সকলকে সনদ পত্র প্রদান করা হয়েছে। ৩০ টি কমিউনিটি ক্লিনিকে সেবাদানকারী ৩০ জন সি এইচ সি পির অংশগ্রহনে উপজেলা স্বাস্থ্য ও পঃ পঃ কর্মকর্তা ডাঃ সুদেষ্ণা সরকার  এর সভাপতিত্বে উক্ত   কর্মশালায় প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন উপজেলা নির্বাহী অফিসার  মীর আলিফ রেজা । স্বাস্থ্য শিক্ষা ও পরিবার কল্যাণ বিভাগের বাস্তবায়নে উক্ত কর্মশালায় বিভাগীয় সমন্বয়কারী (ন্যাশনাল ভায়া সেন্টার)   দারা শিকো মোল্যা প্রধান আলোচক হিসেবে মূল প্রবন্ধ উপস্থাপন করেন। সমগ্র অনুষ্ঠানটি পরিচালনা করেন আবাসিক মেডিকেল অফিসার ডাঃ দীপন বিশ্বাস।

দিনাজপুরে যাত্রীবাহী বাস ও ভুট্টা বোঝাই ট্রাকের মুখোমুখি সংঘর্ষে বাসের হেলপার নিহত

দিনাজপুরে যাত্রীবাহী বাস ও ভুট্টা বোঝাই ট্রাকের মুখোমুখি সংঘর্ষে বাসের হেলপার নিহত




দিবাজপুর প্রতিনিধি ঃ দিনাজপুরে যাত্রীবাহী বাস ও ভুট্টা বোঝাই ট্রাকের মুখোমুখি সংঘর্ষে আব্দুস সালাম (৩০) নামে ১ বাসের হেলপার নিহত হয়েছে। এই ঘটনায় গুরুতর আহত অবস্থায় ৫ জনকে হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে।
শনিবার (২০ জুন) বেলা ১১টায় দিনাজপুর-রংপুর মহাসড়কের সদর উপজেলার ১নং চেহেলগাজী ইউনিয়নের নশিপুর জামতলী মোড়ে নশিপুর স্কুল এন্ড কলেজের সামনে এই দুর্ঘটনা ঘটে।এই দুর্ঘটনায় আব্দুস সালাম (৩০) নামে ১ বাসের হেলপার নিহত হয়।
নিহত বাসের হেল আব্দুস সালাম সদর উপজেলার ১নং চেহেলগাজী ইউনিয়নের উত্তর গোবিন্দপুর ডাঙ্গাপাড়ার মৃত তোফাজ্জল হোসেনের ছেলে।
দিনাজপুর ফায়ার সার্ভিস এন্ড সিভিল ডিফেন্সের সিনিয়র ষ্টেশন অফিসার মোঃ মেহফুজ তানজির জানান, বেলা ১১টায় অনিন্দ্য পরিবহন (ঢাকা মেট্রো- ড-০৪-০৩৯৫) রংপুর যাচ্ছিল এবং বীরগঞ্জ থেকে ভুট্টা বোঝাই করে একটি ট্রাক (ঢাকা-ট-১৬-৭৭৬৭) দিনাজপুরের আসছিল। ঘটনাস্থলে আসা মাত্রই যাত্রীবাহী বাস ও ভুট্টা বোঝাই ট্রাকের মুখোমুখি সংঘর্ষ ঘটে। এসময় বাসের পিছন দিক থেকে আসা অপর একটি প্রাইভেট কার (ঢাকা-ক-১১-১৪৪৪) বাসটি ধাক্কা দেয়। এতে ঘটনাস্থলে বাস-ট্রাক ও প্রাইভেট কার দুমরে মুচরে যায়। খবর পেয়ে ফায়ার সার্ভিসের সদস্যরা বাস ও ট্রাকের ভিতর থেকে আটকে পড়াদের উদ্ধার করে দিনাজপুর এম. আব্দুর রহিম মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে নিয়ে যায়। সেখানে কর্তব্যরত চিকিৎসক আব্দুস সালামকে মৃত বলে ঘোষণা করেন। গুরুতর আহত অপর ৫ জনকে মেডিকেলে ভর্তি করে চিকিৎসা দেয়া হয়।
দুর্ঘটনার পর প্রায় ১ ঘন্টা দিনাজপুর-রংপুর মহাসড়কে যানবাহন চলাচল বন্ধ ছিল। পরে হাইওয়ে পুলিশ ঘটনাস্থলে এসে যানবাহন চলাচলে স্বাভাবিক করে।

গবাদি পশুর ওষুধের দাম নিয়ন্ত্রণে ইউএনওর অভিযান

গবাদি পশুর ওষুধের দাম নিয়ন্ত্রণে ইউএনওর অভিযান





মোঃ হাবিবুর রহমান শাকিল ডিমলা নীলফামারী প্রতিনিধি:

নীলফামারীর জলঢাকায় গবাদি পশুর লাম্পি স্কিন রোগকে পুজি করে ঔষুধের দাম বেশি নিচ্ছে অসাধু কিছু ব্যবসায়ী। এমন তথ্য পাওয়ায় শনিবার (২০ জুন)দুপুরে পৌরশহরের বিভিন্ন জায়গায় মোবাইল কোর্ট অভিযান পরিচালনা করেন উপজেলা নির্বাহী অফিসার মাহবুব হাসান। এসময় নির্ধারিত মূল্যের চেয়ে অতিরিক্ত দামে ঔষুধ বিক্রির অপরাধে দুই ব্যবসায়ীকে ৩ হাজার,স্বাস্থ্যবিধি না মেনে মুখে মাস্ক ব্যবহার না করায় ৫ ব্যক্তিকে ৩ হাজার ১’শসহ মোট ৬ হাজার ১’শ টাকা জরিমানা আদায় করেন তিনি। এছাড়াও নির্ধারিত মূল্যের চেয়ে অতিরিক্ত মূল্যে ঔষুধ বিক্রি না করার জন্য পৌরশহরের বিভিন্ন জায়গার ব্যবসায়ীদের সতর্ক করেন ইউএনও। উল্লেখ্য,একই দিন দৈনিক কপোতাক্ষ নিউজের  সংবাদ মাধ্যমসহ বিভিন্ন অনলাইন পত্রিকায় ‘‘জলঢাকায় ক্রেতাদের জিম্মি করে ৪৫ টাকার ঔষুধ ২০০ টাকায় বিক্রি’’ শিরোনামে সংবাদ প্রকাশিত হয়।

লাম্পি স্কিন রোগকে পূজি করে ৪৫ টাকার ওষুধ ২০০ টাকায় বিক্রি

লাম্পি স্কিন রোগকে পূজি করে ৪৫ টাকার ওষুধ ২০০ টাকায় বিক্রি






মোঃ হাবিবুর রহমান শাকিল ডিমলা নীলফামারী প্রতিনিধি:

 
 নীলফামারীর জলঢাকায় গবাদি পশুর লাম্পি স্কিন রোগকে পুজি করে সাধারণ মানুষের কাছে ৪৫ টাকার ঔষুধ ২০০ টাকায় বিক্রি করছেন এক শ্রেণীর ব্যবসায়ী। রেনাটা লিঃ এর ‘‘প্রোনাপেন’’ পন্যের গায়ে ৪৪ টাকা ৫৯ পয়সা নির্ধারিত মূল্য থাকলেও বিভিন্ন কৌশলে গবাদি খামারি ও সাধারণ মানুষদের জিম্মি করে তা ২০০ টাকায় বিক্রি করছেন তারা। এদিকে পশুর জীবন বাঁচাতে নির্ধারিত মূল্যের চেয়ে বেশি দামে ঔষুধ কিনতে বাধ্য হচ্ছেন ক্রেতারাও। উপজেলা প্রাণী সম্পদ অফিস সূত্রে জানা যায়,এবারে উপজেলার বিভিন্ন এলাকায় প্রায় ৫ হাজারের বেশি গবাদি পশু লাম্পি স্কিন রোগে আক্রান্ত হয়েছে,এর মধ্যে উপজেলা প্রাণী সম্পদ অফিস থেকে চিকিৎসা নেয়া দেড়’শ গবাদি পশু পুরোপরি সুস্থ হয়েছে। গবাদি খামারি আইয়ুব আলী,আজাদ হোসেন,সিরাজুল ইসলামসহ অনেকের সঙ্গে কথা হলে তারা সাংবাদিকদের কাছে অভিযোগ করে বলেন,‘‘পশুর জীবন বাঁচাতে নির্ধারিত মূল্যের চেয়ে বেশি দামে ঔষুধ কিনতে হচ্ছে আমাদের। বিভিন্ন অপরাধের দায়ে অনেক জেল জরিমানা দেওয়ার কথা শুনেছি,আমরা উপজেলা প্রশাসনের কাছে বেশি দামে ঔষুধ বিক্রি করা ব্যবসায়ীদের শাস্তির দাবী জানাচ্ছি।’’ বাংলাদেশ কেমিষ্ট এন্ড ড্রাগইষ্ট জলঢাকা উপ-শাখার সভাপতি আলহাজ্ব মাহবুবর রহমান মনি বলেন,‘‘ কোন অসাধু ব্যবসায়ী নির্ধারিত মূল্যের চেয়ে বেশি দামে ঔষুধ বিক্রি করলে তার বিরুদ্ধে আইনানুগ ব্যবস্থা গ্রহণের জন্য উর্ধতন কর্তৃপক্ষের কাছে সুপারিশ করা হবে।’’ এ বিষয়ে উপজেলা নির্বাহী অফিসার মাহবুব হাসানের সঙ্গে মুঠোফোনে জানতে চাইলে তিনি বলেন,‘‘বিষয়টি শুনলাম,অতিদ্রুত জড়িত ব্যবসায়ীদের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নেয়া হবে।’’

করোনা মহামারী মোকাবিলায় দিনাজপুরে দলিত ও ক্ষুদ্র নৃ-গোষ্ঠির মাঝে খাদ্যসামগ্রী বিতরণ সম্পন্ন

করোনা মহামারী মোকাবিলায় দিনাজপুরে  দলিত ও ক্ষুদ্র নৃ-গোষ্ঠির মাঝে খাদ্যসামগ্রী বিতরণ সম্পন্ন





দিনাজপুর প্রতিনিধি :বিশ্বব্যাপী করোনার প্রাদুর্ভাবে বিপর্যস্থ জনজীবন। বাংলাদেশে গত মার্চ মাস থেকে সনাক্ত হওয়া এই রোগ বর্তমানে প্রকট আকার ধারণ করেছে।  অদৃশ্য এই শক্তির মোকাবিলায় সংক্রমন এড়ানোর জন্য বিশ^ স্বাস্থ্য সংস্থার পরামর্শ অনুসারে সামাজিক দূরত্ব বজায় রাখার ক্ষেত্রে ব্যাপক জনসমাগাম এড়িয়ে চলা, নির্দেশিত স্বাস্থ্যবিধি মেনেচলা সহ বিভিন্ন সরকারী বিধিনিষেধের কারণে দৈনিক আয়ের উপর নির্ভরশীল মানুষদের বিশেষত  উত্তর পশ্চিমাঞ্চলে বসবাসরত দলিত ও ক্ষুদ্র নৃ-গোষ্ঠির মানুষ বেশিমাত্রায় অসহায় হয়ে পড়েছে।গ্রামবিকাশ কেন্দ্র পিছিয়ে পড়া এসব দলিত ও ক্ষুদ্র নৃ-গোষ্ঠির জীবন মান উন্নয়নে প্রায় দুই দশক ধরে কাজ করে যাচ্ছে। এরই ধারাবাহিকতায় আন্তর্জাতিক সংস্থা ইউএনডিপি ও হেকস্/ইপার এর সহযোগীতায় গ্রামবিকাশকেন্দ্র করোনাকালীন সময়ে দিনাজপুর জেলার বীরগঞ্জ এবং দিনাজপুর সদর উপজেলার দলিত ও ক্ষুদ্র নৃ-গোষ্ঠীর  প্রায় তিনহাজার পরিবারের মাঝে খাদ্য সামগ্রী বিতরণের জন্য উদ্যোগ গ্রহণ করে। আজ খাদ্যসমাগ্রী বিতরণ কার্যক্রমের সমাপনী দিনে দিনাজপুর জেলার বীরগঞ্জ উপজেলায় তিনটি পয়েন্টে দলিত ও ক্ষুদ্র নৃ-গোষ্ঠীর প্রান্তিক এসব জনগোষ্ঠীর মাঝে খাদ্য সামগ্রী বিতরণ করা হয়। এই খাদ্যসামগ্রীবিতরণ কার্যক্রমে বীরগঞ্জ পাইলট উচ্চবিদ্যালয় মাঠে প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন দিনাজপুর -১ আসনের মনোরঞ্জন শীল গোপাল এমপি। এছাড়াও অন্যান্যদের মধ্যে উপস্থিত ছিলেন বীরগঞ্জ উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তাা মোঃ ইয়ামিন হোসেন, বাজুন বেসরা চেয়ারম্যান বীরগঞ্জ উপজেলা আদিবাসী সমিতি, মোঃ আমিনুল ইসলাম,উপ- প্রধান নির্বাহী, গ্রামবিকাশ কেন্দ্র; ভূপেশ রায়, হেকস্/ইপার প্রতিনিধি এবং সারা মারান্ডী-পরিচালক সোস্যাল ডেভেলপমেন্ট গ্রাম বিকাশ কেন্দ্র,মোঃ আব্দুল খালেক-সিনিয়র ম্যানেজার-গ্রাম বিকাশ কেন্দ্র  সহ বিভিন্ন কর্মকর্তা ও কর্মীবৃন্দ। প্রধান অতিথি তাঁর বক্তব্যে বলেন , “দলিত ও ক্ষুদ্র নৃগোষ্ঠির সার্বিক উন্নয়নে গ্রামবিকাশ কেন্দ্র ইউএনডিপি ও হেকস্/ইপার যে উদ্যোগ গ্রহন করেছে এবং তা সত্যিই প্রশংসার দাবি রাখে। এই খাদ্য সহায়তা প্রান্তিক এই জগোষ্ঠীর মানুষদের করোনাকালীন সময়ে সহায়ক হবে বলে তিনি উল্ল্যেখ করেন। বীরগঞ্জ পাইলট উচ্চবিদ্যালয়ে অনুষ্ঠিত এই করোনা দূর্যোগে দলিত ও আদিবাসী জনগোষ্ঠীর জন্য খাদ্য সহায়তা কার্যক্রমে প্রতিটি অংশগ্রহণকারী ও সহায়তা গ্রহণকারী মাঠের প্রবেশ পথের পাশে রাখা বেসিন এ সাবান দিয়ে হাত ধুয়ে মাঠে প্রবেশ করেন এবং সুনির্দিষ্ট দূরত্ব বজায় রেখে লাইনে দাঁড়িয়ে নির্ধারিত খাদ্য সামগ্রী গ্রহণ করে সুশৃঙ্খল ভাবে প্রস্থান করেন।খাদ্যসহায়তা হিসেবে প্রতিটি দলিত ও আদিবাসী পরিবার প্রতি চাল মিনিকেট-১০ কেজি, আটা প্যাকেট-৪ কেজি, মসুর ডাল- ২ কেজি, চিনি-১ কেজি,লবন-১ কেজি, সয়াবিন তেল-১ লিটার,চিড়া-১ কেজি,সুচি-৫০০গ্রাম ও ১০০ গ্রাম লাইফবয় সাবান ২ টি বিতরন করা হয়েছে।উল্লেখ্য, খাদ্যসামগ্রী বিতরন কার্য্যক্রম গত ১১ই জুন, ২০২০ তারিখে দিনাজপুর স্টেডিয়াম প্রাঙ্গনে সম্মানিত মোঃ মাহ্মুদুল আলম,জেলা প্রশাসক দিনাজপুরের মাধ্যমে উদ্ধোধন করা হয় এরপর এ যাবত মোট পাঁচটি পয়েন্টে বিতরনের কাজ চলে।

কামাল লোহানীর মৃত্যুতে হুইপ ইকবালুর রহিম এমপির শোক

কামাল লোহানীর মৃত্যুতে হুইপ ইকবালুর রহিম এমপির শোক


 

দিনাজপুর প্রতিনিধি  ॥ করোনা ভাইরাসে আক্রান্ত হয়ে ভাষা সৈনিক, দেশ বরেণ্য সাংবাদিক, সাংস্কৃতিক ব্যক্তিত্ব ও বীরমুক্তিযোদ্ধা কামাল লোহানীর মৃত্যুতে দিনাজপুর সদর-৩ আসনের সংসদ সদস্য ও  জাতীয় সংসদের হুইপ ইকবালুর রহিম গভীর শোক প্রকাশ করেছেন। এক শোক বার্তায় তার বিদেহী আত্মার মাগফিরাত কামনা করেন ও শোক সন্তপ্ত পরিবারের প্রতি সমবেদনা জানান এবং শোকাহত পরিবারের প্রতি শোক ধৈর্য্য ধারনের আহবান জানান।
উল্লেখ, ২০ জুন শনিবার সকাল ১০টার দিকে রাজধানীর মহাখালীতে শেখ রাসেল গ্যাস্ট্রোলিভার ইনস্টিটিউট ও হাসপাতালে চিকিৎসাধীন অবস্থায় তিনি শেষ নিঃশ্বাস ত্যাগ করেন। মৃত্যুকালে তার বয়স হয়েছিলো ৮৭ বছর। তিনি এক ছেলে, দুই মেয়েসহ বহু গুণগ্রাহী রেখে গেছেন।

করোনা আপডেট

করোনা আপডেট


    
নিউজ ডেস্কঃ   
২৪ ঘন্টায় নমুনা পরীক্ষাঃ-১৪,০৩১জন
নতুন আক্রান্তঃ-৩,২৪০জন     
মোট আক্রান্তঃ-১,০৮,৭৭৫জন
 মৃত্যুঃ-৩৭জন
 মোট  মৃত্যুঃ-১,৪২৫জন
 সুস্থঃ-১,০৪৮জন
 মোট সুস্থঃ-৪৩,৯৯৩জন 

সুত্রঃ- আইইডিসিআর ও স্বাস্থ্য অধিদপ্তর 

#Stay_Home
#Stay_Safe

উল্লাপাড়ায় যুবলীগের উদ‍্যােগে বৃক্ষ রোপন কর্মসূচির উদ্ভোধন করলেন- এমপি তানভীর ইমাম

উল্লাপাড়ায় যুবলীগের উদ‍্যােগে বৃক্ষ রোপন কর্মসূচির উদ্ভোধন করলেন- এমপি তানভীর  ইমাম



মাসুদ রানা
সিরাজগঞ্জ জেলা  প্রতিনিধিঃ
সিরাজগঞ্জ-৪ (উল্লাপাড়া-সলঙ্গা) আসনের জাতীয় সংসদ সদস্য তানভীর ইমাম বলেছেন,
বাংলাদেশ প্রাকৃতিক দুর্যোগ কবলিত একটি দেশ। এই দুর্যোগ মোকাবেলায় সবাইকে সচেতন ও ঐক্যবদ্ধ হয়ে কাজ করতে হবে। এই মহামারি ও প্রাকৃতিক দুর্যোগ থেকে রক্ষা পেতে হলে সবাইকে বেশি বেশি করে গাছ লাগাতে হবে।
শনিবার ( ২০ জুন) উল্লাপাড়া উপজেলা  যুবলীগের  উদ্যোগে উপজেলা পরিষদ  চত্বরে 
" গাছ লাগাও,পরিবেশ বাঁচাও" এই শ্লোগানকে সামনে রেখে বৃক্ষরোপণ কর্মসূচির শুভ উদ্বোধন অনুষ্ঠানে তিনি এসব কথা বলেন।তিনি আরও বলেন,বঙ্গবন্ধু শেখ  মুজিবুর  রহমান  এর  সুযোগ্য  কন্যা  জননেত্রী প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা’র নির্দেশে ১ লা আষাঢ় থেকে বনজ, ফলদ এবং ওষুধি এই তিন ধরনের গাছ দেশব্যাপী রোপণ করার যে ঘোষণা দিয়েছেন, তা বাস্তবায়ন করা যুবলীগের  প্রতিটি নেতাকর্মীর পবিত্র দায়িত্ব। প্রাকৃতিক দুর্যোগ মোকাবেলায় গাছ লাগানোর কোন বিকল্প নেই। তাই সবাইকে গাছ রোপণে উৎসাহিত করতে হবে ।আমরা সবাই মিলে বাড়ির আঙ্গিনায় বা রাস্তার পাশে খালি জায়গায় গাছ লাগাই – পরিবেশ বাঁচাই।
এসময় উপজেলা নির্বাহী অফিসার  মোঃ আরিফুজ্জামান, উপজেলা ভাইস চেয়ারম্যান  মোঃ মনিরুজ্জামান পান্না, মহিলা ভাইস চেয়ারম্যান  রিবলি ইসলাম কবিতা,উল্লাপাড়া পৌর মেয়র এস এম নজরুল ইসলাম,উলাপাড়া মডেল থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা দীপক কুমার দাশ,উল্লাপাড়া  উপজেলা  যুবলীগের আহবায়ক  এবং এমপি মহোদয়ের একান্ত  সচিব  মীর  আরিফুল  ইসলাম  উজ্জ্বল , যুগ্ম  আহবায়ক এবং  সাবেক জি এস   মোঃ আজিজুল  ইসলাম  শাহ আলম, যুবলীগের সদস্য রুমন, বিধান,  বকুল , মামুন সহ আ.লীগের  অঙ্গ  সংগঠনের  নেতাকর্মী  উপস্থিত  ছিলেন। 
প্রসঙ্গত : উল্লাপাড়া  উপজেলার  যুব
লীগের নেতাকর্মীদের উদ্যোগে ৬ শত ৫০ টি বনজ, ফলদ এবং ওষুধি রোপন করা হবে।এছাড়াও উপজেলার ১৪ টি ইউনিয়নের যুব লীগের নেতাকর্মীদের নিজস্ব  উদ্যোগে ৫ টি করে  বনজ, ফলদ এবং ওষুধি রোপন করার সিদ্ধান্ত  গ্রহণ করেন।

       



.

করোনায় সঙ্গী মোবাইল ফোন!

করোনায় সঙ্গী মোবাইল ফোন!



মেহেরাবুল ইসলাম সৌদিপঃ
নভেল করোনাভাইরাসের প্রাদুর্ভাব ঠেকাতে বন্ধ স্কুল-কলেজ-বিশ্ববিদ্যালয়। ঘরবন্দী লাখো শিক্ষার্থী। ক্লাস-কোচিং, খেলার মাঠ, বন্ধুদের সাথে আড্ডা, আত্মীয়ের বাড়িতে বেড়ানো, সাংস্কৃতিক আচার-অনুষ্ঠান কিংবা উপাসনালয়ে গিয়ে প্রার্থনা, কিছুই করার সুযোগ নেই। ফলে এখন অনেকটা বাধ্য হয়েই প্রযুক্তিসামগ্রীতে নির্ভর করতে হচ্ছে ঘরবন্দি শিক্ষার্থীদের। বিশেষত মোবাইল ফোন, ল্যাপটপ আর টেলিভিশনই হয়ে উঠছে এ করোনা দিনে তাদের সঙ্গী। ফেইসবুক, হোয়াটসঅ্যাপ, মেসেঞ্জার, ইউটিউব, নেটফ্লিক্স—এসব অনলাইন দুনিয়াই এখন তাদের জগৎ।



করোনায় আক্রান্ত সারা বিশ্ব। বাংলাদেশেও করোনার আক্রমন থেকে মু্ক্তি পাচ্ছেনা। এখন বাংলাদেশের শিক্ষা প্রতিষ্ঠানগুলিও বন্ধ রয়েছে। বিভিন্ন বয়সের শিক্ষার্থীরা লম্বা একটা ছুটি কাটাচ্ছে নিজ নিজ গৃহে বসে। শহরে শিশুদের খেলার সুযোগ এমনিতেই কম। যেটুকু সুযোগ ছিল শিশুদের খেলাধুলার , তাও কেড়ে নিয়েছে প্রাণঘাতী মহামারী নভেল করোনা ভাইরাস। লকডাউনের এই সময়ে পরিবারের সাথেই ঘরে আটকে আছে শিশুরাও। সময় কাটাতে বা বিনোদনের জন্য সঙ্গী হয়েছে অনেকেরই মোবাইল ফোন বা ল্যাপটপ। বড়রা আবার অনলাইনে পড়াশোনা করতেছে। ঘরে বন্দি থাকতে থাকতে অলস সময় কাটাতে শিশুরা মোবাইলে বা ল্যাপটপে কার্টন ছবি দেখছে বা গেইম খেলছে। প্রযুক্তি যেমন আশির্বাদ হয়ে আসছে তেমনি প্রযুক্তি অতিমাত্রায় ব্যবহারে হতে পারে ক্ষতির কারণ।



একটি বেসরকারি উচ্চ বিদ্যালয়ের পঞ্চম শ্রেনীর ছাত্র রিফাত। গত ১৭ মার্চ থেকে ঘর থেকে বের হতে পারছে না রিফাত। ফলে মোবাইল ফোন আর ল্যাপটপই এখন তার একমাত্র সঙ্গী। এই দুই যন্ত্রে সিনেমা দেখে ও বিভিন্ন অ্যাপস ব্যবহার করে বন্ধুদের সাথে আড্ডা দিয়েই দিন কাটে রিফাতের। রিফাত বলেন, সারাদিন ঘরে বসে তো সময় কাটে না। বাইরের রেরোনোরও সুযোগ নেই। তাই মোবাইলে বন্ধুদের সাথে ভার্চুয়াল আড্ডা দিয়ে আর সিনেমা দেখেই সময় কাটাতে হয়।



নবম শ্রেণীর ছাত্র আসিফ। ঢাকার একটি নামকরা স্কুলে পড়াশোনা করে। নিয়মিত স্কুলে যায়, বন্ধুদের সাথে খেলাধুলা করে, একসাথে আড্ডা দেয় ঠিকমতো পড়ালেখা করে। ভালোভাবেই চলছিলো তার দিনগুলো। কিন্তু মার্চ মাসের মাঝামাঝি হতে সবকিছু এলোমেলো হয়ে যায়। করোনা ভাইরাসের সংক্রমণ ঠেকাতে স্কুল-কলেজ বন্ধ করে দেওয়া হয়, বাড়ির বাইরে যাওয়ার বিধিনিষেধ আরোপ করা হয়। হঠাৎ সে নিজেকে চার দেয়ালে বন্দি অনুভব করে। তাই সময় কাটাতে মোবাইলের প্রতি ঝুঁকে পড়ে। এখন তার দিন কাটে মোবাইলে ভিডিও গেমস খেলে, ফেইসবুক চালিয়ে আর মুভি দেখে।



উপরের চরিত্রটি রূপক অর্থে ব্যবহৃত হলেও বর্তমানে এরকম অনেক আসিফকে খুঁজে পাওয়া যাবে। করোনা ভাইরাস তান্ডব চালিয়ে যাচ্ছে সমগ্র বিশ্বে এবং যার ফলে স্থবির হয়ে পড়েছে শিক্ষার্থীদের শিক্ষাজীবন। আমাদের দেশে এ বছরের ১৭ মার্চ থেকে সকল শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান বন্ধ রয়েছে। কাজেই শিক্ষার্থীসহ সকলে নিজেদের ঘরে জীবনযাপন করছে। খুব বেশি প্রয়োজন ছাড়া ঘর থেকে বের হওয়া সম্ভব হচ্ছে না। তাই দেশের ও বিদেশের আত্মীয়স্বজনদের খোঁজ খবর হোক কিংবা বন্ধুদের সাথে আড্ডাই হোক প্রায় সব কিছুই এখন মোবাইলে করতে হচ্ছে। দিনের বেশিরভাগ সময় এখন আমাদের কাটছে মোবাইলে। ফলে অনেকেই মোবাইলের প্রতি আসক্ত হয়ে যাচ্ছে।


ঘরবন্দি থাকার কারণে মোবাইল ফোন হয়ে গেছে আমাদের পরম বন্ধু। মোবাইলে গেমস, ফেসবুক চ্যাটিং, ইউটিউব দেখার পরিমাণ অনেক বৃদ্ধি পেয়েছে। একটু পর্যবেক্ষণ করলে দেখা যায় করোনা প্রাদুর্ভাবের আগে মানুষ নিজ নিজ প্রয়োজনে যতটুকু পরিমাণ মোবাইল ব্যবহার করতো এখন সেই ব্যবহার আরও বহুগুণ বৃদ্ধি পেয়েছে। বিশেষ করে শিক্ষার্থীরা স্কুল, কলেজ, বিশ্ববিদ্যালয় বন্ধ থাকার কারণে মোবাইলের প্রতি ঝুঁকে পড়েছে। মাত্রাতিরিক্ত ব্যবহারের কারণে অনেকেই মোবাইলের প্রতি আসক্ত হয়ে মানসিকভাবে ক্ষতিগ্রস্থ হচ্ছে, তাদের স্বাস্থ্যের উপর সৃষ্টি হচ্ছে বিরূপ প্রভাব। এ ক্ষেত্রে তাদের দৃষ্টিশক্তিতে সমস্যা হওয়ার সম্ভাবনা অনেক বেশী। তাছাড়া অতিরিক্ত মোবাইল ব্যবহার মাথায় টিউমারের সৃষ্টি করে, ঘুমের সমস্যা বা নিদ্রাহীনতা দেখা দিতে পারে। মোবাইলের প্রতি আসক্ত হওয়ার কারণে একঘেয়েমি, স্মৃতিশক্তি লোপ এবং বিভিন্ন মানসিক সমস্যা সমস্যা দেখা দিতে পারে। তাই আমাদের স্বাস্থ্যের প্রতি যত্নশীল হয় মোবাইলের পরিমিত ব্যবহার নিশ্চিত করা উচিত।


করোনায় সবচেয়ে বেশি লাভবান হচ্ছে মোবাইল ফোন কোম্পানিগুলো। কেননা যে কোনো সেবার জন্য ফোন করলে আগে করোনার সতর্কতা বিষয়ক ম্যাসেজ দেয় তবে তা বিনামূল্যে নয়। এর জন্য টাকা কেটে নেয়। আমার মনে হয় এটা অমানবিক। করোনার সতর্কতার মেসেজটি বিনামূল্যে দিতে পারতো। তাছাড়া এখন অনেকের অবসর সময়ের সঙ্গী হচ্ছে মোবাইল ফোন। ফলে মোবাইল ফোনের ব্যবহার অনেকাংশে বৃদ্ধি পাচ্ছে। শিশু-কিশোরদের কাছ থেকে মোবাইল ফোন-কম্পিউটার যতটা সম্ভব দূরে রাখাই ভালো। এগুলো তাদের কল্পনাশক্তিকে সীমিত করে ফেলে। এছাড়া চোখ ও মস্তিষ্কেরও ক্ষতি করে।


মোবাইলের অপব্যবহার আমাদের জীবনের মূল্যবান অনেক সময় তাকে নষ্ট করছে। মোবাইল সারা দুনিয়াকে হাতের মুঠোয় এনে দিয়েছে। আমরা চাইলে এখন মুহূর্তের মধ্যেই মোবাইলের মাধ্যমে যেকোনো তথ্য জেনে নিয়ে নিজেদের আরও সমৃদ্ধ করতে পারি। তাই মোবাইল ব্যবহারের ক্ষেত্রে প্রোডাক্টিভ হয়ে সুনির্দিষ্ট সময়ের জন্য ব্যবহার করা উচিত। তাছাড়া করোনা পরিস্থিতিতে আমরা অনেকটা অপ্রত্যাশিতভাবে অবসর সময় পেয়েছি। কাজেই আমাদের পরিবারের সাথে খুব ভালোভাবে সময় কাটানো উচিত। অবসর সময় কাটানোর জন্য আমরা অনেক গল্পের বই পড়তে পারি। ঘরের বিভিন্ন কাজে পরিবারের মানুষদের সাহায্য করতে পারি।


দ্রোহ, প্রেম, স্বপ্ন ও সংগ্রামের কবি রুদ্র মুহম্মদ শহিদুল্লাহ’র ২৯ তম মৃত্যুবার্ষিকী কাল

দ্রোহ, প্রেম, স্বপ্ন ও সংগ্রামের  কবি রুদ্র মুহম্মদ শহিদুল্লাহ’র ২৯ তম মৃত্যুবার্ষিকী কাল






  মোঃ এরশাদ হোসেন রনি মোংলা প্রতিনিধিঃ    
আগামী কাল ২১ জুন তারুণ্য ও সংগ্রামের দীপ্ত প্রতীক কবি রুদ্র মুহম্মদ শহিদুল্লাহ'র ২৯ তম মৃত্যুবার্ষিকী। প্রতি বছর দিন টি ঘটা করে পালন করা হলেও এবার মৃত্যুবার্ষিকী উদযাপনে ভিন্নতা এনে দিয়েছে করোনার ভায়াবহ ছোবল। দিনটি উপলক্ষে রুদ্র স্মৃতি সংসদ মোংলায় মিঠাখালী'তে সিমিত পরিসরে সরকারি নির্দেশনা মোতাবেক স্বাস্থ্য বিধী মেনে পালিত হবে দিনটি। মৃত্যুবার্ষিকী উদযাপন উপলক্ষে বৃহস্পতিবার সন্ধায়
রুদ্র স্মৃতি সংসদের পরিবারের পক্ষ থেকে এক জরুরী সভায়, সকালে কুরআন খতম, কবির মাজার জিয়ারত,  কবির সমাধীতে পুস্পমাল্য অর্পন এবং বিকেলে দোয়া মাহাফিলের আয়োজনের সিন্ধান্ত গ্রহন করা হয়। এবং 
কবি রুদ্র মোহম্মদ শহিদুল্লাহ'র ২৯ তম মৃত্যুবার্ষিকী উপলক্ষে ২১ জুন রাত ৯ টায়
আমেরিকা থেকে 
 "প্রবাস দর্পনে'র সম্পাদক, রুপচাঁদ দাশ রুপকের  সঞ্চলনায় 
 স্মরণাঅনুষ্টান " ভালো আছি ভালো থেকো "
রাত ৯ টায় অনুষ্টিত হবে। অনুষ্টানে যুক্ত থাকবেন নাট্যকার নাট্য অভিনেতা মামুনুর রশিদ (ঢাকা), গন সঙ্গীত শিল্পী ফকির আলমগীর (ঢাকা), কথা সাহিত্যিক ইসহাখ খান, মোংলা সস্মিলিত সাস্কৃতিক জোটের আহব্বায়ক নূর আলম শেখ, রুদ্র সৃতি সংসদের সভাপতি সুমেল সারাফত, এবং অভীনেত্রী সুমনা সোমা (ঢাকা)। তারুণ্য ও সংগ্রামের দীপ্ত প্রতীক কবি রুদ্র মুহম্মদ শহিদুল্লাহ (১৯৫৬-১৯৯১) তার শিল্পমগ্ন প্রতিটি উচ্চারণে তুলে ধরেছেন মাটি ও মানুষের প্রতি আমূল দায়বদ্ধতা। আর যা তাকে দিয়েছে আধুনিক বাংলার অন্যতম কবির স্বীকৃতি।
অকাল প্রয়াত এই কবি তার কাব্যযাত্রায় যুগপৎ ধারণ করেছেন দ্রোহ ও প্রেম, স্বপ্ন ও সংগ্রাম। নিজেকে মিলিয়ে নিয়েছিলেন আপামর নির্যাতিত মানুষের আত্মার সঙ্গে; হয়ে উঠেছিলেন তাদেরই কন্ঠস্বর। ‘জাতির পতাকা আজ খামচে ধরেছে সেই পুরোনো শকুন’- এই নির্মম সত্য অবলোকনের পাশাপাশি ততোধিক স্পর্ধায় তিনি উচ্চারণ করেছেন- ‘ভুল মানুষের কাছে নতজানু নই’।
 যাবতীয় অসাম্য, শোষণ ও ধর্মান্ধতার বিরুদ্ধে অনমনীয় অবস্থান কবিকে পরিণত করেছে ‘তারুণ্যের দীপ্ত প্রতীক’-এ। একই সঙ্গে তাঁর কাব্যের আরেক প্রান্তর জুড়ে রয়েছে স্বপ্ন, প্রেম ও সুন্দরের মগ্নতা। মাত্র ৩৪ বছরের স্বল্পায়ু জীবনে তিনি সাতটি কাব্যগ্রন্থ ছাড়াও গল্প, কাব্যনাট্য এবং ‘ভালো আছি ভালো থেকো’ সহ অর্ধ শতাধিক গান রচনা ও সুরারোপ করেছেন। ১৯৯১ সালের  ২১ জুন প্রতিবাদী কবি রুদ্র মাত্র ৩৪ টি বসন্ত ছুঁয়ে লক্ষ কবি প্রেমিদের কাঁদিয়ে পাড়ি জমান না ফেরার দেশে।

কুৃমিল্লায় লাকসামে স্যাভলন সংকটে দিশেহারা জনসাধারণ

কুৃমিল্লায় লাকসামে স্যাভলন সংকটে দিশেহারা জনসাধারণ





লাকসান, কুৃমিল্লা প্রতিনিধিঃ

কুমিল্লার লাকসামে স্যাভলন, ডেটলসহ লিকুইড এন্টিসেপটিক সংকট চলছে করোনা প্রাদুর্ভাবের শুরু থেকে। আর এ সংকটের ফায়দা লুটছে কতিপয় এজেন্ট ও ডিলার। পুরো লাকসাম অঞ্চল জুড়েই এ চিত্র।

লাকসামে বাবুল পালের পাল ব্রাদার্সের বিরুদ্ধে স্যাভলন এন্টিসেপটিক কিনতে যাওয়া দোকানী ও ফার্মেসীর মালিকদের বিপুল সংখ্যক সাবান ও হ্যান্ড ওয়াশ কিনতে বাধ্য করার অভিযোগ উঠেছে। অন্যথায় স্যাভলন ছাড়াই ক্রেতাদের ফিরিয়ে দেয়া হচ্ছে। এছাড়াও অধিক দামে অতি প্রয়োজনীয় এ পণ্যটি বিক্রি করার অভিযোগ তাদের বিরুদ্ধে।

জানা গেছে, করোনা ভাইরাসের সংক্রমণ দেখা দেয়ার শুরু থেকেই লাকসামে স্যাভলনসহ অন্যান্য এন্টিসেপটিক লিকুইড সংকট দেখা দেয়। এ সুযোগে লাকসাম শহরের কুমার পট্টিতে অবস্থিত পাল ব্রাদার্স স্যাভলন লিকুইড নিয়ে কারসাজিতে নামে। ফার্মেসীর মালিক ও দোকানীরা স্যাভলন কিনতে গেলে সংকট দেখিয়ে পাইকারী দামের চাইতে অধিক দাম রাখছে। তাছাড়া, স্যাভলনের সাথে বিপুল সংখ্যক সাবান ও হ্যান্ড ওয়াশ কিনতে বাধ্য করা হচ্ছে। অন্যথায় স্যাভলন ছাড়াই ফিরিয়ে দেয়া হচ্ছে ক্রেতাদের।

এদিকে, ‘স্যাভলন লিকুইড এন্টিসেপটিকের সাথে সাবান ও হ্যান্ড ওয়াশ প্যাকেজ’ এসিআই কোম্পানি কতৃক নির্ধারন করা হয়েছে বলে প্রচার করছেন বাবুল পাল। কিন্তু এসিআই কোম্পানীর ঊর্ধ্বতন কর্মকর্তারা বলছেন এ ধরনের কোন প্যাকেজ কোম্পানি দেয়নি। তাছাড়া, গ্রাহকদের এক পণ্যের সাথে আরেক পণ্য কিনতে বাধ্যবাধকতা নেই কোম্পানীর তরফ থেকে।
ভুক্তভোগী এক ফার্মেসীর মালিক জানান, এক লিটার স্যাভলন কিনতে গেলে এর সাথে ৩৬টি সাবান ও কয়েকশ’ টাকার হ্যান্ড ওয়াশ কিনতে বাধ্য করছেন পাল ব্রাদার্সের মালিক বাবুল পাল। এটা নাকি কোম্পানির নিয়ম। পরে স্যাভলন ছাড়াই ফিরে আসি। আমরা ফার্মেসীতে সাবান, হ্যান্ড ওয়াশ দিয়ে কি করব?
অপর এক ফার্মেসীর মালিক বলেন, আমি এক ডজন স্যাভলন এন্টিসেপটিক কিনতে গেলে এর সাথে আরো ৩ কার্টুন সাবানের প্যাকেজ কিনতে হবে বলে জানান পাল ব্রাদার্সের মালিক। পরে স্যাভলন না কিনেই ফিরে যাই। আর আমাদের কাস্টমাররা দোকানে এসে এ পণ্যটি ছাড়াই ফিরে যাচ্ছেন।

এ বিষয়ে স্যাভলন ডিলার পাল ব্রাদার্সের মালিক বাবুল পাল জানান, কোম্পানী আমাদেরকে ঠিকমত মালামাল সাপ্লাই দিচ্ছে না। স্যাভলন লিকুইডের সাথে সাবান ও হ্যান্ড ওয়াশের প্যাকেজ কিনতে হবে। এটা কোম্পানীর প্যাকেজ।

কিন্তু এসিআই কোম্পানীর কুমিল্লা জোনাল ম্যানেজার আমিনুল হক বলেন, কোম্পানীর তরফ থেকে এক পণ্যের সাথে অন্য পণ্য কিনতে কাউকে বাধ্য করা হয় না। আর এ ধরনের কোন প্যাকেজ কোম্পানীর নেই। তবে প্রয়োজনের তুলনায় স্যাভলন সাপ্লাই কিছুটা কম।
অন্যদিকে, ডেটল এন্টিসেপটিক লিকুইডের ডিলার অধ্যাপক মোঃ আবুল খায়ের জানান, আমাদের কাছে যা সাপ্লাই আসছে তাই আমরা বাজারে দিচ্ছি।

এ বিষয়ে নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট ও উপজেলা সহকারী কমিশনার (ভূমি) উজালা রানি চাকমা বলেন, অভিযোগের বিষয়টি খতিয়ে দেখে আইনগত ব্যবস্থা নেয়া হবে।

সিরাজগঞ্জ হাসনা গ্রামে প্রেমের টানে প্রেমিক প্রেমিকা উধাও

সিরাজগঞ্জ হাসনা গ্রামে প্রেমের টানে প্রেমিক প্রেমিকা উধাও




সিরাজগঞ্জ জেলাপ্রতিনিধি ঃ
সিরাজগঞ্জ সদর উপজেলার বাগবাটী ইউনিয়নের হাসনা গ্রামের প্রেমিক প্রেমিকা দুজনে প্রেমের টানে অজানার উদ্দ্যেশে উধাও হয়েছেন। গত ১১ মে প্রেমিক প্রেমিকা দুজনে বিবাহ বন্ধনে আবদ্ধ হবার জন্য ছেলে মেয়ে পালিয়ে যায়। মেয়ের বাবা অপহরণ মামলার কারনে  পরিবারের চোখের আড়ালে রয়েছেন বলে এলাকাবাসি সুত্রে জানা যায়। 
স্থানীয়রা জানান, হাসনা গ্রামের মৃত দেলবার আলী শেখের ছেলে মো. রফিকের সাথে পার্শ্ববর্তি সুজন মির্জার মেয়ে মোছা. শাওন খাতুনের দীর্ঘদিন ধরে প্রেম লীলা চলছিল। বিষয়টি জানাজানি হলে শাওন খাতুন ও মো. রফিক দুজনের সম্মতিক্রমে  বিয়ের আশায় পালিয়ে যায়। 
হাসনা গ্রামের মো. সোরহাব, মামুন, রব্বানী ও মোছা. রতনা খাতুন জানান, রায়গঞ্জ উপজেলার ব্রক্ষগাছা ইউনিয়নের কয়ড়া গ্রামে ফুফুর বাড়িতে মোছা. শাওন খাতুন বেড়াতে যান। ফুফুর বাড়ি থেকে মোছা. শাওন খাতুন তার প্রেমিক মো. রফিককে ডেকে নিয়ে দুজনে প্রেমের টানে অজানার উদ্দ্যেশে পাড়ি জমান। দুজনের মধ্যে ২ বছর ধরে প্রেম লীলা চলছিল। এলাকাবাসি আরো জানান, ছেলের পরিবারকে ষড়যন্ত্রমুলক হয়রানী করতে থানায় মিথ্যা অভিযোগ দায়ের করেছে যা আদৌ ঠিক নয়। 
এই ঘটনায় মেয়ে বাবা সুজন মির্জা বাদী হয়ে সদর থানায় একটি অপহরণের অভিযোগ দায়ের করেন। সদর থানা পুলিশ প্রেমিকের ভাই আমিনুল ইসলামকে আটক করেছেন। 
এ বিষয়ে বাগবাটী ইউনিয়ন আওয়ামীলীগের যুগ্ন সাধারন সম্পাদক ও স্থানীয় মাতব্বর মো. মানিক খান ও যুবলীগের সভাপতি ও ইউপি সদস্য মো. মনজুর মোর্শেদ সজল জানান, গত কয়েকদিন আগে মোছা. শাওন খাতুন মুঠো ফোনে বলেন, আমরা দুজনে বিবাহ করেছি। আমার স্বামীর পরিবারের কাউকে আমাদের বিষয়ে কোন প্রকার অন্যায় অত্যাচার করলে আমি আমার পরিবারের বিরুদ্ধে মামলা করতে বাধ্য হবো। আমি মোছা. শাওন খাতুন যা করেছি নিজ ইচ্ছায় নিজ জ্ঞানে করেছি কারো প্রলোভন বা প্ররোচনায় বাড়ি থেকে বের হয়নি। 
উল্লেখ্য হাসনা গ্রামের মসজিদের ইমাম এর মাধ্যমে মো. রফিক তার প্রেমিকাকে একটি মোবাইল ফোন কিনে দিলে বিষয়টি জানাজানি হলে মেয়ের পরিবারের লোকজন গত ২৬ রোজায় ইমামকে মসজিদ থেকে বের করে দেয় বলে জানান এলাকাবাসি। 
উর্দ্বতন কর্তৃপক্ষকে ন্যায় বিচার প্রতিষ্ঠার লক্ষ্যে বিষয়টি সঠিক তদন্তপুর্বক ব্যবস্থা গ্রহনের দাবী জানান ভুক্তভোগী পরিবার।

সাংবাদিক ইয়াকিন এর উপর সন্ত্রাসী হামলার প্রতিবাদে সাতক্ষীরায় মানববন্ধন

সাংবাদিক ইয়াকিন এর উপর সন্ত্রাসী হামলার প্রতিবাদে সাতক্ষীরায় মানববন্ধন



আজহারুল ইসলাম সাদী, সাতক্ষীরা প্রতিনিধিঃ
জাতীয় দৈনিক মাতৃজগত পত্রিকার কক্সবাজার প্রতিনিধি সাংবাদিক মোঃ ইয়াকিন ও তার পরিবারের সদস্যদের উপর সন্ত্রাসী হামলার প্রতিবাদে সারাদেশে সাংবাদিক নির্যাতনকারী সকল সন্ত্রাসীদের গ্রেফতারের দাবীতে " বাংলাদেশ সাংবাদিক ক্রাইম সংগঠন সাতক্ষীরা জেলা শাখার উদ্যোগে এক মানববন্ধন কর্মসূচি পালিত হয়েছে।
উক্ত মানববন্ধন উপলক্ষে আজ শনিবার ২০ জুন-২০২০ সকাল ১১ টায় সাতক্ষীরা-যশোর মহাসড়কের সংগ্রাম হাসপাতাল সংলগ্ন "বাংলাদেশ সাংবাদিক ক্রাইম সংগঠন সাতক্ষীরা জেলা শাখার কার্যালয়ের সামনে সামাজিক দুরত্ব বজায় রেখে উক্ত প্রতিবাদী মানববন্ধন কর্মসূচি
মানববন্ধনে মাতৃজগত সাতক্ষীরা ব্যুরো প্রধান এম ইদ্রীস আলির সভাপতিত্বে ও সঞ্চলনায় বক্তব্য রাখেন, সাংবাদিক ডাঃ মহিদার রহমান, ইয়াসিন আলি,এস এম সোহাগ রানা,মিজানুর রহমান,মোঃ হুমায়ুন কবির, মোঃ আবু সাইদ, মোঃ লাল্টু হোসেন, শহিদুল আরম,আল মামুন,মাসুদুর রহমান,মনিরুল ইসলাম, হাবিবুল্লাহ বাহার, শাহিনুর রহমান, শাহজাহান আলি মিটন, আজহারুল ইসলাম সাদী প্রমুখ।
সাংবাদিক বক্তারা তাদের বক্তব্যে বলেন সাংবাদিকরা হলো সমাজের দর্পণ।
সাংবাদিকরা দেশের আনাচে-কানাচে নিত্য ঘটে যাওয়া ঘটনাকে দেশের সবার সামনে তুলে ধরেন।
সাংবাদিকদের সংবাদ এর বিষয় বস্তু হতে পারে সমাজের সকল উন্নয়ন, প্রশংসা, শাফল্য বা ঘুষ দুর্নীতিসহ নানা কর্মকাণ্ডের উপর।
তবে প্রশংসা মূলক কর্মকাণ্ডের নিউজে বাহ্বা পেলেও দুর্নীতির চিত্র প্রকাশ করলে অপরাধীরা সাংবাদিক সমাজের উপর তেলে বেগুনে জ্বলে উঠেন!
তখন অপরাধীদের গোমর ফাঁস হয়ে যাওয়ার কারণে নানা হুমকি ধামকি এমনকি জখম বা কোন কোন ক্ষেত্রে হত্যার ও স্বীকার হতে হচ্ছে।
তবে দুঃখের বিষয় সাংবাদিকদের উপর খুন জখম হলেও তারা তার ন্যার্য বিচার থেকে বঞ্চিত হচ্ছেন।
দক্ষিণ বঙ্গের সাংবাদিক স.ম আলাউদ্দিন, শামছুর রহমান বা মুকুল হত্যার স্বীকার হলেও তার বিচার আমরা পাইনি?
সমপ্রতি কক্সবাজারের সাংবাদিক ইয়াকিন অত্রালাকার ইয়াবা ব্যাবসায়ী চোরাচালানকারী সিএনজি আমিন কর্তৃক হত্যার উদ্দেশ্য মারাত্মক জখম প্রাপ্ত হয়ে মৃত্যুর সাথে পাঞ্জা লড়ে যাচ্ছেন,
আমরা দেশের সকল সাংবাদিকগণ বর্জ্য কণ্ঠে প্রতিবাদী আওয়াজ তুলতে চাই।
এবং সরকার তথা প্রশাসনের উদ্দেশ্যে বলতে চাই আপনারা অপরাধীদের অবিলম্বে গ্রেফতার করুণ এবং বিষয়গুলির সঠিক তদন্ত সাপেক্ষ বিচারের আওতায় আনুন।
আমরা প্রায় অধিকাংশ সাংবাদিক সমাজ বেতনহীনভাবে দেশের সুনাগরিক হিসেবে দেশপ্রেমিকতায় সর্বদা অন্যায়ের বিপক্ষে লেখালেখি করে চলেছি।
আমরা সরকারের কাছে দাবী রাখি অবিলম্বে আমাদের সাংবাদিকদের জন্য সরকারি ভাবে বেতন বরাদ্দের ব্যবস্থা করা হোক, সেই সাথে আমাদের জান মালের নিরাপত্তার সার্বিক ব্যবস্থা করা হোক।
আমরা সত্য ঘটনা সমাদের সামনে তুলে ধরতে গিয়ে যদি এভাবে দুর্নীতিবাজদের প্রতিহিংসার স্বীকার হই তাহলে।
কেমন করে আমরা সমাজের দুর্নীতি অপকর্মের প্রতিচ্ছ্ববি সকলের সামনে তুলে ধরবো।
আমরা সাংবাদিকরা জান মালের নিরাপত্তা চাই?
আমরা চাইনা কক্সবাজার এর প্রতিবাদী সহকর্মী সাংবাদিক ইয়াকিন এর মত জুলুমবাজ চোরাচালানী কর্তৃক জখমের স্বীকার হতে।
আমরা চাই অনতিবিলম্বে কক্সবাজারের সাংবাদিক ইয়াকিন সহ সকল নির্যাতিত সাংবাদিকদের নার্য বিচার।
দ্রুত অপরাধীদের গ্রেফতার পূর্বক আইনের আওতায় এনে শাস্তির ব্যবস্থা করা হোক।

মোহাম্মদ আলী এন্ড ফয়জুন নেছা মেমোরিয়াল হাই স্কুলে খাদ্য সামগ্রী বিতরণ করলেন জেলা প্রশাসক

মোহাম্মদ আলী এন্ড ফয়জুন নেছা মেমোরিয়াল হাই স্কুলে খাদ্য সামগ্রী বিতরণ করলেন জেলা প্রশাসক





দিনাজপুর প্রতিনিধি ॥ ২০ জুন শনিবার শহরের পশ্চিম রামনগর জামাইপাড়া এলাকায় মোহাম্মদ আলী এন্ড ফয়জুন নেছা মেমোরিয়াল হাই স্কুলে আলোহা মেডিকেল মিশন (ইউএসএ) ও আলোহা সোসাল সার্ভিসেস বাংলাদেশ (এএসএসবি)’র আর্থিক সহযোগিতায় ৩দিনব্যাপী বিদ্যালয়ের শিক্ষার্থীসহ ১ হাজার পরিবারের মাঝে করোনা ভাইরাস পরিস্থিতির কারণে খাদ্য সামগ্রী বিতরণ করা হয়। সামাজিক দুরত্ব বজায় রেখে খাদ্য সামগ্রী বিতরণ করতে গিয়ে প্রধান অতিথি জেলা প্রশাসক মোঃ মাহমুদুল আলম বলেন, সারা বিশ্বের মানুষ করোনা ভাইরাসের সাথে বেঁচে থাকার যুদ্ধ করছে। এর একমাত্র চিকিৎসা হলো সচেতনতা। স্বাস্থ্য বিধি মেনে চলতে পারলে দেশকে করোনামুক্ত করতে পারবো। এরজন্য সকলের সহযোগিতায় প্রয়োজন। খাদ্য সামগ্রী বিতরণ অনুষ্ঠানে সভাপতিত্ব করেন আলোহা সোসাল সার্ভিসেস বাংলাদেশ (এএসএসবি)’র নির্বাহী পরিচালক মিনারা বেগম। এসময় উপস্থিত ছিলেন অর্থ ও প্রশাসনিক কর্মকর্তা মোঃ আতিকুর রহমান খান, মনিটরিং অফিসার ফখরুল ইসলাম, প্রকল্প সমন্বয়কারী মোঃ নজরুল ইসলাম, অভ্যন্তরিন নিরীক্ষা বিধান চন্দ্র রায়, হিসাব রক্ষক রুখসানা পারভীন, প্রধান শিক্ষক আব্দুল কুদ্দুস সহ বিদ্যালয়ের সকল সহকারী শিক্ষক ও শিক্ষিকাবৃন্দ। সঞ্চালকের দায়িত্ব পালন করেন, বিদ্যালয়ের সহকারী শিক্ষক হীরা লাল রাম। উল্লেখ্য করোনা ভাইরাস পরিস্থিতিতে আলোহা সোসাল সার্ভিসেস বাংলাদেশ তাদের কর্ম এলাকায় প্রায় ৭ হাজার মানুষের মাঝে পর্যায়ক্রমে খাদ্য সামগ্রী বিতরণ করে আসছে।

লাম্পি স্কিন ডিজিজ প্রতিরোধে ভেটেরিনারি ক্যাম্প ও জনসচেতনতামূলক সভা অনুষ্ঠিত

লাম্পি স্কিন ডিজিজ প্রতিরোধে ভেটেরিনারি ক্যাম্প ও জনসচেতনতামূলক সভা অনুষ্ঠিত




দিনাজপুর প্রতিনিধি॥ ২০ জুন শনিবার দিনাজপুর সদর উপজেলার মাঝাডাঙ্গা এলাকায় জেলা প্রাণি সম্পদ দপ্তরের আয়োজনে এবং প্রাণিসম্পদ দপ্তরের সহযোগিতায় গবাদি পশুর লাম্পি স্কিন ডিজিজ প্রতিরোধে ভেটেরিনারি ক্যাম্প ও জন সচেতনতা মূলক সভা অনুষ্ঠিত হয়। ক্যাম্পের উদ্বোধন করতে গিয়ে জেলা প্রাণিসম্পদ অফিসার ডাঃ শাহিনুর আলম বলেন, এটি একটি পক্স গোত্রের লাম্পি স্কিন ডিজিজ ভাইরাস রোগ। যা প্রধানত গরুতেই দেখা দেয়। দিনাজপুর সদর উপজেলা, খানসামা এবং বোচাগঞ্জে এই রোগ মৃদুভাবে সংক্রমণ ঘটলেও বর্তমানে রোগটি সম্পূর্ণ নিয়ন্ত্রণে রয়েছে। এব্যাপারে আতঙ্কিত বা ভয় পাওয়ার কোন কারণ নেই। ৩টি উপজেলায় এ রোগ প্রতিরোধে ২২টি ভেটেরিনারি মেডিকেল টিম কাজ করছে। অন্যান্য উপজেলায় ১টি করে ভেটেরিনারি মেডিকেল টিম প্রস্তুত রয়েছে। আমাদের বিশ্বাস আগামী ১ সপ্তাহের মধ্যে লাম্পি স্কিন ডিজিজ দিনাজপুর জেলা থেকে নির্মুল করতে সক্ষম হবো। সভায় উপজেলা প্রাণিসম্পদ কর্মকর্তা ডাঃ মোঃ আব্দুর রহিম বলেন, এ রোগ হলে দুধ উৎপাদন কমে যায়, গবাদি পশু দূর্বল হয়ে পরে, ওজন কমে যায় এবং চামড়ার গুনাগুন নষ্ট হয়ে যায়। মাছি, মশা ও আঠালি এবং ব্যবহৃত নিডেল ও সিরিঞ্জ বারবার ব্যবহার করাতে এ রোগ ছড়ায়। এ রোগের সাধারণত গরু আক্রান্ত হচ্ছে তবে এ রোগে মানুষ আক্রান্ত হয় না। রোগটি দেখা দিলে তাৎক্ষনিকভাবে প্রাণিসম্পদ দপ্তরে যোগাযোগ করতে বলা হলো। এ রোগের চিকিৎসার জন্য সরকারিভাবে বিনামূল্যে ঔষধপত্র সহ চিকিৎসা প্রদান করা হচ্ছে।

দেশ বিখ্যাত আলেমেদ্বীন জনাব কামাল উদ্দীন জাফরী হুজরের জন্য দোয়ার দরখাস্ত

দেশ বিখ্যাত আলেমেদ্বীন জনাব কামাল উদ্দীন জাফরী হুজরের জন্য দোয়ার দরখাস্ত





মোঃ আওলাদ হোসেন 
জেলা প্রতিনিধি ভোলা (দৌলতখান) 

দেশবিখ্যাত ও আন্তর্জাতিক ইসলামী স্কলার ভোলার কৃতি সন্তান জনাব  মাওলানা কামাল উদ্দীন জাফরী হুজুর অসুস্থ হয়ে ঢাকার একটি হাসপাতালে চিকিৎসাধীন আছে।আল্লাহ পাক হাজার হাজার আলেমের উস্তাদ জনাব কামালউদ্দীন জাফরী হুজুরকে মহান রাব্বুল আলামীন শেফায়ে কামেলা দান করুন।
ভোলার এক উজ্জ্বল নক্ষত্র ইসলামের জীবন্ত কিংবদন্তী-
মাওলানা সায়্যেদ কামাল উদ্দিন জাফরী 

ভোলার কৃতি সন্তান, মুসলিম বিশ্বের এই উজ্জলদীপ্ত জ্ঞানের মহাসাধককে কয়জনেই বা চিনি ?
বলছি প্রখ্যাত আলেম মাওলানা কামাল উদ্দিন জাফরীর কথা। 

সাইয়্যেদ কামালুদ্দীন জাফরী এক জীবন্ত ইতিহাস। ইসলামী শিক্ষার প্রচলন ও শরিয়াভিত্তিক সমাজ গঠনে তাঁর অবদান অসামান্য। তিনি একাধারে নির্ভেজাল তাওহীদ ও সুন্নাহর একনিষ্ঠ অনুসারী, শিরক ও বিদআতবিরোধী আন্দোলনের বলিষ্ঠ কণ্ঠস্বর, বাংলাদেশে ইসলামী চিন্তা ও শিক্ষাবিস্তারের সফলতম অগ্রনায়ক এবং ব্যাংকিং ও ইন্স্যুরেন্স জগতে ইসলামী শরিয়া প্রতিষ্ঠার অন্যতম চিন্তাসরবরাহকারী। আন্তর্জাতিক খ্যাতিসম্পন্ন এই ইসলামী চিন্তাবিদ জাতীয় ও আন্তর্জাতিক মানের বহু প্রতিষ্ঠানের সফল প্রতিষ্ঠাতা। তাঁর হাতে প্রতিষ্ঠিত হয়েছে নরসিংদীর জামেয়া কাসেমিয়া এবং বাংলাদেশ ইসলামী বিশ্ববিদ্যালয়ের মতো আলোকিত প্রতিষ্ঠানের।

জন্মঃ
বিচক্ষণ আর দূরদৃষ্টিসম্পন্ন এই মানুষটির আদি বসতি বাংলাদেশের দক্ষিণাঞ্চলে অবস্থিত দ্বীপাঞ্চল ভোলায়। ১৯৪৫ সনের ৩ মার্চ তারিখে বরিশালের ভোলা জেলার বোরহানুদ্দিন থানার সৈয়দ আওলিয়া গ্রামে তাঁর জন্ম হয়। পিতা মাওলানা সাইয়্যেদ আবু জাফর আব্দুল্লাহ ছিলেন একজন খ্যাতনামা আলেম। তাঁর দাদার নাম হযরত মাওলানা মুফতি আব্দুল হাদী। তাঁর মহিয়সী মাতা ফাতেমা খাতুন ও নানা প্রখ্যাত আলেম আবেদ আলহাজ্ব মকবুল আহমেদ।

পারিবারিক ঐতিহ্যঃ
তাঁর পরিবারের রয়েছে এক ঐতিহাসিক ও গৌরবজনক পরিচিতি। তাঁর পরিবারের উর্ধ্বতন পুরুষ প্রিয় নবী হযরত মুহাম¥দ (সা.) এর বংশধর। একারণেই তাঁর নামের পূর্বে ‘সাইয়্যেদ’ শব্দটি যোগ করা হয়।

শৈশবঃ
অত্যন্ত দ্বীনি পরিবেশে আল্লামা জাফরীর শৈশব অতিবাহিত হয় । তাঁর পিতা ছিলেন অত্যন্ত পরহেজগার আলেম। পিতার তত্ত্বাবধানে ছোটকাল থেকেই তিনি ইলম ও আমলের উপর বেড়ে উঠেন।

তাঁর পারিবারিক ইতিহাস অনুসন্ধান করলে জানা যায়, জমিদার আগা বাখের খানের সময় একটি আরব পরিবার ‘বোরহান উদ্দিন’ নামক দ্বীপাঞ্চলে আগমন করেন। তখন জমিদার সাহেব তাদেরকে পূর্ব ও পশ্চিমে দু’টি দ্বীপ লাখেরাজ করে দেন। সেই আরব পরিবারের প্রধান ছিলেন সৈয়দ আওলিয়া, তাঁর নামানুসারেই এ দু’টি দ্বীপের সমন্বয়ে গঠিত গ্রামের নাম দেয়া হয় ‘সৈয়দ আওলিয়া’।

তাঁর সম্মানিত পিতা মাওলানা আবু জাফর আব্দুল্লাহ ছিলেন স্থানীয় মির্জাকালু ইসলামিয়া ফাজিল মাদরাসার প্রতিষ্ঠাতা অধ্যক্ষ। আবেদ জাহেদ ও প্রখ্যাত আলেমে দ্বীন হিসেবে এলাকায় তাঁর বিশেষ খ্যাতি ছিল।

তাঁর দাদা মাওলানা মুফতি আবদুল হাদী ছিলেন ফুরফুরার প্রথম পীর হযরত মাওলানা আবু বকর সাহেবের খলিফা। কোলকাতা আলিয়া মাদরাসা থেকে তিনি সেকালে গোল্ডমেডেল পেয়ে টাইটেল পাশ করেছিলেন।

তাঁর নানা-বাড়ি ছিল ভোলা জেলার তজুমুদ্দিন থানার মহাদেবপুর গ্রামে। তাঁর নানাও একজন প্রখ্যাত আলেম ও আবেদ ছিলেন। তৎকালীন নোয়াখালীর কলাগাছিয়া পীর সাহেবের খলীফা ছিলেন তিনি।

কৈশোরঃ
আল্লামা জাফরীর বাবা মাওলানা আবু জাফর আব্দুল্লাহ ছিলেন তাঁর দাদার প্রতিষ্ঠিত ফাজিল মাদরাসার অধ্যক্ষ এবং প্রখ্যাত আলেমে দ্বীন। তাঁর বাবার কাছে বহু আলেম প্রতিনিয়ত আসা যাওয়া করতেন। তিনি সেসব আলেমদের খেদমত করবার স্থায়ী সুযোগ পেয়েছিলেন। তাঁর দাদা মাওলানা মুফতি আবদুল হাদীও ছিলেন প্রসিদ্ধ আলেম এবং সেই এলাকার প্রসিদ্ধ পীর। তাঁর কাছে বহু আলেম ও মুত্তাকী লোকদের আগমন ঘটত। আল্লামা জাফরী শিশু ও কিশোর বয়সে আন্তরিকভাবে তাঁদের সেবা-যত্ন করতেন। বিনিময়ে এসব মানুষের কাছ থেকে তিনি পেতেন অকৃত্রিম স্নেহ আদর আর হৃদয় নিংড়ানো দোয়া।

বাল্য ও কৈশোর বয়সের কয়েকটি ঘটনাঃ

বাল্য বয়সে তিনি পরহেজগার, মুত্তাকী, পীর, আলেমে দ্বীন ও উস্তাদদের সেবা করার সুযোগ পান। তাঁর পিতা ও দাদার কারণে তিনি এই সুযোগ পেয়েছিলেন। মাঝে মাঝে তাঁর দাদার কাছে আসতেন সৈয়দ মাওঃ আব্দুল গণি মাদানী। জাফরী সাহেবের বয়স তখন মাত্র ১০ বছর। একবার আল্লামা আবদুল গণি মাদানী তাঁর দাদার কাছে এলে জাফরী সাহেব তাঁর অনেক খেদমত করেন। মাদানী সাহেব খুশি হয়ে তাঁর জন্যে দোয়া করে বলেন-

“কামাল তুম কামাল বন যাও ”

এই সৈয়দ আবদুল গণি মাদানী ছিলেন রাসূল (সা.) এর মায়ের বংশের লোক। তিনি একজন বিশ্বখ্যাত ক্বারী ছিলেন। বিভিন্ন স্থানে সহীহ শুদ্ধভাবে পবিত্র কোরআন তিলাওয়াতের শিক্ষা দিতেন তিনি। জাফরী সাহেবের দাদার সাথে তাঁর আত্মার সম্পর্ক তৈরি হয়েছিল। একারণে প্রায়ই তিনি তাঁর নানার বাড়িতে আসতেন। সে সুবাদে আল্লামা জাফরী এই মহান মানুষটির সাহচর্য পাবার সুযোগ পেয়েছিলেন। সৈয়দ আবদুল গণী মাদানী মসজিদে নববীতে নামাজ পড়াতেন। তাঁর নামে মসজিদে নববীর একটি দরজার নামও রাখা হয়েছে। পরবর্তীতে তাঁর ছাত্র ক্বারী আবদুল মজিদও মসজিদে নববীতে নামাজ পড়াতেন। বাংলাদেশের জাতীয় মসজিদ বায়তুল মোকাররম তিনিই উদ্বোধন করেন। শেষ বয়সে তিনি বাংলার সবুজ মাটিতেই মৃত্যুবরণ করেন, তবে সৌদি সরকার তাঁকে দাফন করেন মদিনার পবিত্র মাটিতে।

কিশোর বয়স থেকেই কামালুদ্দীন জাফরী একজন একনিষ্ঠ নামাজি ছিলেন। শুধু নিজেই নামাজ পড়তেন- তা নয়, বরং এলাকার অন্যসব বাল্যবন্ধুদের নিয়েও নামাজ আদায় করতে যেতেন তিনি। সমাজের সবাইকে নামাজি মুত্তাকি মানুষে পরিণত করবার লক্ষ্যে কিশোর বয়সেই তিনি “নামাজ কায়েম পরিষদ” গঠন করেন। প্রতিদিন ভোর বেলা ঘুম থেকে উঠে কিশোর বন্ধুদের নিয়ে সুর করে গান গেয়ে নামাজের প্রতি আহবান করত এই দল।

বাল্যকাল থেকেই আল্লামা জাফরী তুখোর মেধাবী ও প্রচণ্ড সাহসী ছিলেন। গ্রামের মক্তবে প্রাথমিক শিক্ষা সমাপ্ত করে দাদার প্রতিষ্ঠিত মির্জাকালু ইসলামিয়া সিনিয়ার ফাজিল মাদরাসায় ভর্তি হন। তখনও মাদরাসার অধ্যক্ষ ছিলেন তাঁর বাবা অধ