আনন্দমুখর উৎসবের মাধ্যমে পালিত হল উপজেলা ছাত্রলীগের সাধারণ সম্পাদকের জন্মদিন

 আনন্দমুখর উৎসবের মাধ্যমে পালিত হল উপজেলা ছাত্রলীগের সাধারণ সম্পাদকের জন্মদিন




মিঠুন কুমার রাজ,

উপজেলা প্রতিনিধি। 


ইন্দুরকানী উপজেলা ছাত্রলীগের সাধারণ সম্পাদক নেওয়াজ খান এর জম্মদিন পালন করা হয়েছে গত শনিবার। শনিবার ২২ আগস্ট সন্ধ্যায় পিরোজপুর জেলার ইন্দুরকানী উপজেলার পাড়েরহাটের ছাত্রলীগের অফিস কক্ষে বসে কেক কেটে জন্মদিনের উৎসব পালন করা হয়।


এর আগে উপজেলার পাড়েরহাট ইউনিয়নের নিজ গ্রামের বাড়ি থেকে দুপুরে তার মায়ের হাতে মিষ্টি মুখ করেন।পরে তার বন্ধুরা কেক কাটার আয়োজন করে।

এছাড়া সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম ফেসবুক এবং মেসেঞ্জারে দুই হাজারের বেশি বিভিন্ন রাজনৈতিক নেতা-কর্মী, বন্ধু, শ্রদ্ধেয় বড় ভাই, স্নেহের ছোট ভাই ও আত্নীয়-স্বজন সহ শুভাকাঙ্ক্ষীরা শুভেচ্ছা ও শুভ কামনা জানিয়েছেন।

প্রকাশ্যে পিতা পুত্রকে পিটিয়ে মাথা ফাটিয়ে দিল মনতোষ ও অসীম বৈরাগী

 প্রকাশ্যে পিতা পুত্রকে পিটিয়ে মাথা ফাটিয়ে দিল মনতোষ ও অসীম বৈরাগী




নিউজ ডেস্কঃ  ইন্দুরকানী উপজেলার দক্ষিণ ইন্দুরকানী গ্রামের সুমন হালদার ও তার বাবা সুধির হালদারের উপর শনিবার  সন্ধা ৭ :৪৪  মিনিটে, ইন্দুরকানী উপজেলার মিলবাড়ি বসে প্রানঘাতি হামলা করা হয়,হামলাকারীরা হলো স্থানীয়, মনোতোষ বৈরাগী, ও তার বড় ভাইয়ের ছেলে অসীম বৈরাগী। এদের মধ্যে দির্ঘদিন ধরে, অসীম বৈরাগীর বাবাকে নিয়ে কোলহ চলতে ছিল। ঐ ঘটনা নিয়ে শনিবার সন্ধায় দঃ ইন্দুরকানীর মিল বাড়িতে বসে বাক বির্তক হয়, মনতোষ বৈরাগী বড় ভাইয়ের ছোট ছেলে অসীত কুমার বৈরাগী ফোনে বলে ঐ পরিবারের সবাইকে তোরা হাত পা ভেঙ্গে দে বাকি সব আমি দেখবো। এই খবর শুনতে না শুনতেই এক পর্যায় মনতোষ বৈরাগী ও অসীম বৈরাগী তাদের উপর ঝাপিয়ে পরে হামলা চালায়,এ সময় সুমন হালদার ও তার বাবা গুরুতর আহত হয় এবং তাদের দুজনকে পিটিয়ে মাথা ফাটিয়ে দেয় মনতোষ ও অসীম বৈরাগী মিলে। পিতা পুত্রের মাথা ফাটিয়ে দ্রুত ঘটনাস্থল থেকে পালিয়ে যায়। পরে রক্তাক্ত পিতা পুত্রকে  স্থানীয় লোকজন তাদের উদ্ধার করে, পিরোজপুর সদর হাসপাতালে ভর্তি করে।

সভাপতির বিরুদ্ধে সম্পাদকের মামলা: মঠবাড়িয়ায় ছাত্রলীগের বিক্ষোভ

 সভাপতির বিরুদ্ধে সম্পাদকের মামলা: মঠবাড়িয়ায় ছাত্রলীগের বিক্ষোভ




পিরোজপুর প্রতিনিধিঃপিরোজপুরের মঠবাড়িয়া উপজেলা ছাত্রলীগ নেতৃবৃন্দের বিরুদ্ধে মিথ্যা মামলা প্রত্যাহারের দাবিতে ছাত্রলীগ বিক্ষোভ মিছিল ও সমাবেশ করেছে।


রবিবার (২৩ আগস্ট) মঠবাড়িয়া উপজেলার ৩নং মিরুখালি ইউনিয়ন ছাত্রলীগ বিক্ষোভ মিছিল ও সমাবেশ করে। 


এ-সময় বিক্ষোভ মিছিলে অংশ নেন, আহম্মেদ আলিম, সাধারন সম্পাদক মিরুখালি স্কুল এন্ড কলেজ ছাত্রলীগ ও সাধারণ সম্পাদক, মানবিক সোসাইটি মিরুখালি শাখা, মেহেদী হাসান, ছাত্র নেতা ও সাধারণ সম্পাদক, বঙ্গবন্ধু ছত্র পরিষদ মঠবাড়িয়া উপজেলা শাখা, বিভিন্ন ওয়ার্ড ছাত্রলীগের সভাপতি/সাধারণ সম্পাদকসহ ছাত্রলীগের বিভিন্ন পর্যায়ের নেতা কর্মীরা।


সাম্প্রতিক মঠবাড়িয়ায় শুভ শীল এর উপর সন্ত্রাসী হামলাকে কেন্দ্র করে উপজেলা ছাত্রলীগের সাধারণ সম্পাদক মসিউর রহমান মূর্তজা বাদী হয়ে বুধবার (১৯ আগস্ট) ছাত্রলীগ সভাপতিসহ মঠবাড়িয়া থানায় ১৮ জনকে নাম উল্লেখসহ ও অজ্ঞাত ২০ ছাত্রলীগ ও যুবলীগ নেতাকর্মীদের আসামি করে মামলা দায়ের করে।


উপজেলা ছাত্রলীগ সভাপতির অনুসারীদের দাবি, এই সন্ত্রাসী হামলায় তারা জড়িত নয় বরং এটা একটি উদ্যেশ্য প্রনোদিত রাজনৈতিক প্রতিহিংসার ফাঁদ।


এসময় বিক্ষোভকারী ছাত্রলীগ কর্মীরা বলেন, মঠবাড়িয়া উপজেলা ছাত্রলীগকে নেতৃত্বশূন্য করতে রাজনৈতিক প্রতিহিংসা পরায়ণ হয়ে ছাত্রলীগের সভাপতিসহ দুই যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক কে এই মামলায় জড়ানো হয়েছে, আমরা সুষ্ঠু তদন্ত সাপেক্ষে ছাত্র নেতাদের বিরুদ্ধে মামলা প্রত্যাহার চাই।


এবিষয়ে উপজেলা ছাত্রলীগের সভাপতি শরিফুল ইসলাম রাজু জানান, রাজনৈতিকভাবে হেয়প্রতিপন্ন করার জন্য আমি এবং আমাদের উপজেলা ছাত্রলীগের সাবেক দুই যুগ্ম সাধারন সম্পাদককে এই মামলায় ষড়যন্ত্রমূলকভাবে মিথ্যা ও অহেতুক ভাবে জড়ানো হয়েছে। 


সভাপতি আরও জানান, শুভ এর উপর প্রকৃত হামলাকারীদের আইনের আওতায় এনে শাস্তির দাবি জানাই আর আমাদের উপর যে মিথ্যা বানোয়াট মামলা দায়ের করা হয়েছে সেটির প্রত্যাহার চাই।


এবিষয়ে উপজেলা ছাত্রলীগের সাবেক যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক আবু ইউসুফ রায়হান জানান, আমি সম্পূর্ণ রাজনৈতিক প্রতিহিংসার শিকার, এ ঘটনায় সামান্যতম সম্পৃক্ততা আমার নেই, যারা আমাকে এই মিথ্যা মামলায় জড়িয়েছে তাদের বিচার আল্লাহর উপর ছেড়ে দিলাম। 


তিনি আরও জানান, তদন্ত না করেই আমাদের এই মামলায় আসামি করা হয়েছে, এটা খুব দুঃখজনক! আমরা শুভ এর উপর সন্ত্রাসী হামলার সুষ্ঠু তদন্ত চাই এবং অতি দ্রুত এই মামলা প্রত্যাহার করা হোক।

শৈলকুপা উপজেলা যুবদলের আহ্বায়ক কমিটি নিয়ে মিথ্যা চারের প্রতিবাদ

শৈলকুপা উপজেলা যুবদলের আহ্বায়ক কমিটি নিয়ে মিথ্যা চারের প্রতিবাদ


সম্রাট হোসেন, শৈলকুপা উপজেলা (ঝিনাইদহ) প্রতিনিধিঃঝিনাইদহ জেলার শৈলকুপা উপজেলায় দীর্ঘ ১১ বছর  পর যুবদলের আহ্বায়ক কমিটি ঘোষণা করা হয়। এই কমিটি নিয়ে ফেসবুক  ও সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে বিভিন্ন  ফেক  আইডি থেকে ঝিনাইদহ জেলা যুবদলের সভাপতি আহসান হাবিব রনক এবং জেলা যুবদলের সাধারণ সম্পাদক আশরাফুল ইসলাম পিন্টু কে নিয়ে কমিটি বাণিজ্যের যে অভিযোগ উঠেছে তা সম্পূর্ণ ভিত্তিহীন ও মিথ্যা অভিযোগ। ঝিনাইদহ জেলা যুবদলের সভাপতি ও সাধারণ সম্পাদক প্রতিবেদক কে জানান যে শৈলকুপা উপজেলা যুবদলের যে কয়জন আহবায়ক ও সদস্য সচিব পদপ্রার্থী ছিল তাদের মধ্যে সবচেয়ে যোগ্য "আবু জাহিদ চৌধুরি" তাই তাকে উপজেলা যুবদলের আহ্বায়ক করা হয়েছে আবু জাহিদ চৌধুরী ১৯৯১ সালে ছাত্রদলের শৈলকুপা উপজেলা শাখার প্রাথমিক সদস্য।১৯৯৩ সালের পাইলট স্কুল ছাত্রদলের সভাপতি। ১৯৯৫ সালে শৈলকুপা সরকারি ডিগ্রী কলেজে বাংলাদেশ জাতীয়তাবাদী ছাত্রদলের মনোনীত প্রার্থী হয়ে বিপুল ভোটে  এজিএস নির্বাচিত হয়। ১৯৯৬ সালে শৈলকুপা উপজেলা ছাত্রদলের প্রচার সম্পাদক ১৯৯৮ সালে শৈলকুপা উপজেলা ছাত্রদলের যুগ্ন-সম্পাদক ২০০০ সালে শৈলকুপা উপজেলা সরকারি  ডিগ্রী কলেজ ছাত্রদলের সভাপতি।২০০৩ সাল থেকে ২০১৯ সাল পর্যন্ত শৈলকুপা উপজেলা শাখা ছাত্রদলের সাধারণ সম্পাদকের দায়িত্ব পালন করেন। তিনি ১৮টি মামলার এজাহারভুক্ত আসামি, ৬বার  কারাবরণ দীর্ঘ পাঁচ বছর ঘরবাড়ি ছাড়া বহুবার হামলার শিকার। এই ব্যক্তি কি শৈলকুপা উপজেলা যুবদলের আহবায়ক হওয়ার যোগ্য নই? আমরা মনে করি তার থেকে যোগ্য কোন আহ্বায়ক প্রার্থী শৈলকুপা উপজেলা যুবদলে নেই। শৈলকুপা উপজেলা যুবদলের সদস্য সচিব মোহাম্মদ জমির উদ্দিন একজন সৎ পরিশ্রমই ও নিষ্ঠাবান রাজনীতিবিদ তিনি তিনি বিএনপির রাজনীতি করার জন্য বহুবার হামলার শিকার হয়েছেন শৈলকুপা থানার সামনে ঝিনাইদহ জেলার সবথেকে বড় পোল্টির বাচ্চা ও খাবারের ডিলারশিপ দোকান এই আওয়ামী প্রশাসন ও ক্যাডার বাহিনী বন্ধ করে দিয়েছে তার বাসা থেকে ১৫০ সিসির মোটরসাইকেল ছিনতাই করে নেওয়া হয় কবিরপুর পুলিশের উপর হামলা বোমা বিস্ফোরণ ভাঙচুর এবং শেখপাড়া পুলিশের উপর হামলা বোমা বিস্ফোরণ ও ভাঙচুর মামলার এজাহারভুক্ত আসামি হয়ে দীর্ঘদিন কারাবরণ করেছেন এবং নির্বাচনের সময় তার বিরুদ্ধে নাশকতা ও বোমা বিস্ফোরণ সহ বিভিন্ন মামলা মামলায় গ্রেপ্তার করে দীর্ঘ দিন কারাবরণ করতে হয়। এছাড়াও পাঁচবার থানা হেফাজতে নিয়ে তাকে নির্যাতন করা হয়েছে বর্তমানে তার নামে ৬ টি মামলা চলছে। জমির উদ্দিন শৈলকুপা উপজেলা যুবদলের আগের কমিটির আহ্বায়ক কমিটির 2 নং সদস্য এবং ১৫ নং ইউনিয়ন যুবদলের সাধারণ সম্পাদক ছিলেন। দীর্ঘদিন তার ব্যবসা বাণিজ্য ও ঘরবাড়ি ছেড়ে পালিয়ে বেড়াতে হয় আবু জাহিদ চৌধুরী ও মোঃ জমির উদ্দিন দুইজনে শৈলকুপা উপজেলার যুবদলের নিবেদিতপ্রাণ তারা শৈলকুপা এবং ঝিনাইদহে বিভিন্ন মিছিল-মিটিংয়ে সবার আগে এক ঝাঁক সাহসী নেতাকর্মী নিয়ে অংশগ্রহণ করেছেন। তাই আমরা মনে করি এই কমিটি শৈলকুপা উপজেলা যুবদল কে সুসংগঠিত ও শক্তিশালী একটি সংগঠন হিসাবে যুবদলকে প্রতিষ্ঠা করতে পারবেন তাই তাদের ও আমাদের নামে যে মিথ্যা ও কুরুচিপূর্ণ তথ্য ব্যবহার করা হচ্ছে তার বিরুদ্ধে তীব্র নিন্দা ও প্রতিবাদ জানাচ্ছি। এ বিষয়ে কেন্দ্রীয় বিএনপি সহ-সাংগঠনিক সম্পাদক বাবু জয়ন্ত কুমার কুণ্ডু, সাবেক সংসদ সদস্য ঝিনাইদহ ১ শৈলকুপা আসনের  আলহাজ্ব এম এ আব্দুল ওহাব শৈলকুপা উপজেলা বিএনপির সাবেক সাধারণ সম্পাদক, সাবেক চেয়ারম্যান রাকিবুল ইসলাম দিপু, ঝিনাইদহ জেলা বিএনপি সাবেক সহসভাপতি সাবেক চেয়ারম্যান বীর মুক্তিযোদ্ধা আলহাজ্ব আসাদুজ্জামান আসাদ, শৈলকুপা উপজেলা বিএনপির সাবেক সাংগঠনিক সম্পাদক সাজ্জাদুর রহমান সাজ্জাদ, শৈলকুপা উপজেলা বিএনপির আহ্বায়ক কমিটির যুগ্ন আহ্বায়ক ও সাবেক চেয়ারম্যান রফিকুল ইসলাম ও ফিরোজ ভাই সহ সহ শৈলকুপা উপজেলা বিএনপি ছাত্রদল যুবদল মৎস্যজীবী দল ও সর্বস্তরের নেতাকর্মী এই কমিটিকে সর্বকালের সর্বশ্রেষ্ঠ কমিটি হিসেবে আখ্যায়িত করেছেন। এই কমিটি নিয়ে যারা মিথ্যাচার ও কুরুচিপূর্ণ মন্তব্য করছেন তাদেরকে তীব্র নিন্দা ও প্রতিবাদ জানিয়েছেন।

পটিয়ায় মাদকদ্রব্য অধিদপ্তর অভিযানে ১৭শত পিস ইয়াবাসহ গ্রেফতার-১

 পটিয়ায় মাদকদ্রব্য অধিদপ্তর অভিযানে ১৭শত পিস ইয়াবাসহ গ্রেফতার-১



সেলিম চৌধুরী, পটিয়া প্রতিনিধিঃমাদকদ্রব্য নিয়ন্ত্রণ অধিদপ্তর, চট্টগ্রাম জেলা কার্যালয়, চট্টগ্রাম খ সার্কেল (পটিয়া) কর্তৃক উপ পরিচালক হুমায়ুন কবির খন্দকার এর নির্দেশনায় এবং পরিদর্শক মোহাম্মদ সাইফুল ইসলামের নের্তৃত্বে  ২৩ আগষ্ট সকালে  


চট্রগ্রাম – কক্সবাজার মহাসড়কস্থ মোজাফরাবাদ এন. জে. উচ্চ বিদ্যালয়েরর সামনে এস. আলম পরিবহন   গাড়ি তল্লাশী করে ১৭০০ পিচ ইয়াবা ট্যাবলেট সহ একাধিক মাদক মামলার আসামি মোঃ হোছন (৩৮) পিতা- মৃত. আমির হোছাইন, সাং- নয়াপাড়া, দক্ষিণ হ্নীলা, থানা- টেকনাফ, কক্সবাজার কে গ্রেফতার করে। এ ব্যাপারে পটিয়া থানায় একটি মাদকদ্রব্য আইনে    নিয়মিত মামলা রুজু হয়েছে। সুএে জানাযায়,  মাদকদ্রব্য অধিদপ্তর কর্মকর্তা মোঃ সাইফুল ইসলাম যোগদান করার পর থেকে একের পর এক ইয়াবা কারবারিকে গ্রেফতার করতে সক্ষম হয়েছেন। মাদক কারবারিরা বিভিন্ন কৌশল অবলম্বন করলেও তা পরাস্ত করতে সক্ষম হয়েছে পরিদর্শক সাইফুল ইসলাম। এ ব্যাপারে স্থানীয় লোকজন সন্তুষ্ট প্রকাশ করেছেন ইউনিয়ন পরিষদের মেম্বার জাহাঙ্গীর আলম, সাইফুল ইসলাম, মহিলা আওয়ামীলীগের সাধারণ সম্পাদক মেম্বার সাজেদা বেগম , মেম্বার জায়দুল হক সহ আরোও অনেকে.

ভার্চুয়াল পদ্ধতিতে সৃজন সাংস্কৃতিক পরিষদের জাতীয় শোক দিবস পালন

 ভার্চুয়াল পদ্ধতিতে সৃজন সাংস্কৃতিক পরিষদের জাতীয় শোক দিবস পালন




শিপন নাথ,স্টাফ রিপোর্টার:- সৃজন সাংস্কৃতিক পরিষদের উদ্যোগে গতকাল ২২ আগষ্ট বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের ৪৫ তম শাহাদাত বার্ষিকী উপলক্ষে জাতীয় শোক দিবসের এক আলোচনা সভা ভার্চুয়াল পদ্ধতিতে অনুষ্টিত হয়। 


সংগঠনের সভাপতি অভিষেক চৌধুরী’র সভাপতিত্বে প্রধান অতিথির হিসেবে যুক্ত হয়ে বক্তব্য রাখেন সাবেক ছাত্রনেতা, কলামিস্ট লায়ন এ.কে জাহেদ চৌধুরী, প্রধান বক্তা হিসেবে বক্তব্য রাখেন নিউজ চাটগাঁ পত্রিকার সম্পাদক হারাধন চৌধুরী। বিশেষ অতিথির বক্তব্য রাখেন দীপঙ্কর দাশগুপ্ত, আন্না ভট্টাচার্য্য।


 সংগঠনের সদস্যদের মধ্যে যুক্ত ছিলেন সংগঠনের সাংস্কৃতিক সম্পাদক ওয়াসিফ রেজা জাওয়াদ, সহ অর্থ সম্পাদক অভি তালুকদার, সহ দপ্তর, বন্ধুত্ব ও ক্রীড়া সম্পাদক আদিত্য চৌধুরী। প্রধান অতিথি বলেন, বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান আজীবন বাঙালী হৃদয়ে চিরঞ্জীব। তার আদর্শ ধারণ করে আমাদের সামনের দিকে এগিয়ে নিয়ে যেতে হবে।


আলোচনার শেষে ১৫ আগষ্ট ও ২১ আগষ্ট গ্রেনেড হামলায় নিহতদের রুহের মাগফেরাত কামনা করে মোনাজাত পরিচালনা করে সাংস্কৃতিক সম্পাদক ওয়াসিফ রেজা জাওয়াদ।

কচুয়া থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা সাথে সুরক্ষা নাগরিক অধিকার ও মর্যাদা (সুনাম) কমিটির লবি,এ্যাডভোকেসি আলোচনা সভা

 কচুয়া থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা সাথে  সুরক্ষা নাগরিক অধিকার ও মর্যাদা (সুনাম) কমিটির লবি,এ্যাডভোকেসি আলোচনা সভা




শ্যামা সাহা,স্টাফ রিপোর্টারঃ২৩ আগস্ট রবিবার বিকালে বাগেরহাট জেলার কচুয়া উপজেলা সুরক্ষা নাগরিক অধিকার ও মর্যাদা (সুনাম) কমিটির উদ্যোগে সুনামের কার্যক্রমের উপর, কচুয়া থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা সাথে থানার সভা কক্ষে একটি সভা অনুষ্ঠিত হয়। কচুয়া থানার সুরক্ষা, নাগরিক অধিকার ও মর্যাদা (সুনাম) কমিটির সভাপতি সন্জীব সাহার সভাপতিত্বে বক্তব্য রাখেন কচুয়া থানার  ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা ওসি সরদার ইকবাল খান, সুনামের সহ-সভাপতি প্রশান্ত পাইক,সম্পাদক চিন্ময় কান্তি সাহা,মানবাধিকার সম্পাদিকা শ্যামা সাহা,সহ সম্পাদক সাইদুল ইসলাম,প্রচার সম্পাদক মনি শঙ্কর,অনুপা হালদার সহ আরো সদস্যবৃন্দ। 


মানবাধিকার সুরক্ষায় রাষ্ট্রীয় আইনের যথাযথ প্রয়োগের দাবি এবং অসহায়দের মানবাধিকার সুরক্ষায় সকলকে এগিয়ে আসার আহ্বান জানান বক্তারা।


করোনা পরিস্থিতিতে লোক সমাগম কম থাকায় বিকাল ৩ টা থেকে ৪ টা পর্যন্ত সংক্ষিপ্ত পরিসরে আলোচনা সভা অনুষ্ঠিত হয়।



সভা শেষে সুনামের কার্যক্রমের উপর এক প্রস্থ কাগজ ও কমিটির তালিকা থানা ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা মহোদয়ের নিকট হস্তান্তর করা হয়। থানা ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা মহোদয় সুনাম কমিটিকে সার্বিক সহযোগিতার অাশ্বাস দেন এবং এলাকায় কোন প্রকার সহিংসতা ঘটনা ঘটলে তাকে জানানোর আহ্বান  জানান।

ঝিনাইদহ জেলা প্রশাসক জনাব সরোজ কুমার নাথের অভিযান অব্যাহত

ঝিনাইদহ জেলা প্রশাসক জনাব সরোজ কুমার নাথের অভিযান অব্যাহত





খোন্দকার আব্দুল্লাহ বাশার। 

খুলনা ব্যুরো প্রধান। 

করোনা ভাইরাস থেকে মানুষকে বাঁচাতে প্রতিদিনের ন্যায় ২৩ আগষ্ট রবিবার  শহরের মোড়ে মোড়ে চলে ভ্রাম্যমাণ আদালতের অভিযান। অভিযানে নিজেই নেতৃত্ব দেন জেলা প্রশাসক জনাব সরোজ কুমার নাথ। অভিযান চলে স্বাস্থ্য বিধি লঙ্ঘনকারি ইজিবাইক মোটরসাইকেলের বিরুদ্ধে । সেসময় যেসকল নিম্নআয়ের মানুষ মাস্ক ছাড়া ছিলেন তাদের মুখে নিজের হাতে মাস্ক পরিয়ে দেন জেলা প্রশাসক ।

এ অভিযানে ভীত হতে দেখা যায়নি কোন মানুষকে। বরং জেলা প্রশাসকের মহানুভবতায় অভিভূত হয়েছেন পথচারীরা । মহামারী করোনা ভাইরাস থেকে মানুষকে বাঁচাতে জেলা প্রশাসকের এই অভিযানকে স্বাগত জানিয়েছেন সচেতন মহল। অসংখ্য ধন্যবাদ ও অভিনন্দন জানিয়েছেন সর্বস্তরের মানুষ ।

কুষ্টিয়া খোকসাতে তিন সন্তানের জননী প্রেমের টানে ঘর ছাড়া

কুষ্টিয়া খোকসাতে তিন সন্তানের জননী প্রেমের টানে ঘর ছাড়া





খোন্দকার আব্দুল্লাহ বাশার,খুলনা ব্যুরো প্রধানঃকুষ্টিয়া জেলায় খোকসা উপজেলার বড়‌ইচারা উত্তর পাড়া গ্রামে তিন সন্তানের মোছা: রোজিনা খাতুন (৩৫) পাশের বাড়ির রমজান হোসেন সাথে প্রেমের টানে ঘর ছেড়েছে এমন অভিযোগ রোজিনা র স্বামী আব্দুল রহিম। জননীকে নিয়ে উধাও হলেন রমজান নামে এক ব্যক্তি। এই ঘটনায় রহিম থানায় একটি সাধারণ ডায়েরি করেন। ফলে এ নিয়ে এলাকায় তোলপাড় চলছে।


এদিকে আব্দুল রহিমের দাবি, গত ১৭/৮/২০২০ আগস্ট সকাল আনুমানিক ৯ টার সময় রমজান তার স্ত্রীকে নিয়ে এলাকা ছেড়ে পালিয়ে গেছে। তিন সন্তানের জননী রোজিনা এবং রমজানের মধ্যে পাড়া-প্রতিবেশী হিসাবে সম্পর্ক ছিলো চাচা। আর পালানোর সময় তার ঘর থেকে ১ লাখ ৫৫ হাজার টাকা নিয়ে যায় ।


ঐএলাকাবাসী থেকে জানা যায় , মোঃ রোজিনা খাতুনের সঙ্গে রমজানের ভালোবাসার সম্পর্ক গড়ে ওঠে বহুদিনের। আব্দুর রহিমের বাড়িতে সে মাঝেমধ্যে দেখা করার জন্য আসতেন । সোমবার সকালে রোজিনা খাতুন তার বোনের বাড়িতে বেড়ানোর কথা বলে বাড়ি থেকে বের হয় সে আর তার নিজ বাড়িতে ফিরে আসে নাই । পরে আমরা শুনতে পারি রোজিনা রমজানের সঙ্গেই চলে গেছে ।


এ বিষয়ে তিন সন্তানের জননীর বড় মেয়ে সুমাইয়া  সঙ্গে কথা বললে তিনি জানান, আমাদের বাড়িতে রমজান মাঝে মধ্যে আসত । রমজান আমার মায়ের সঙ্গে মোবাইল ফোনে কথা বলত । আমার মায়ের কাছে দোকানের ভাজাপোড়া কিনে দিত । আমি মাকে জিজ্ঞাসা করলে আমাকে খারাপ ভাষায় বকা বাধ্য করতো। আমার বাবা দেখতে ব্যাকা আমাকে ব্যাকার মেয়ে ব্যাকা বলতো । খালার বাড়ি যাওয়ার কথা বলে বাড়ি থেকে বের হয়ে ছিলো । 


আব্দুর রহিমের শশুর সঙ্গে কথা বললে তিনি জানান , আমি বড় চাড়াই আসার পর শুনতে পারলাম আমার মেয়ে রোজিনাকে নিয়ে পালিয়েছে রমজান। আত্মীয়-স্বজনের বাড়িতে খোঁজাখুঁজি করেও পাওয়া যাচ্ছে না । এ বিষয়ে থানায় একটি সাধারণ ডায়েরি হয়েছে ।

ঝিকরগাছায় বাংলাদেশ প্রেসক্লাব যশোর জেলা শাখার ৭ সদস্যদের ত্রি-বার্ষিক কমিটি গঠন

 ঝিকরগাছায় বাংলাদেশ প্রেসক্লাব যশোর জেলা শাখার ৭ সদস্যদের ত্রি-বার্ষিক কমিটি গঠন




প্রেস বিজ্ঞপ্তি : বাংলাদেশ প্রেসক্লাব যশোর জেলা শাখার ৭ সদস্যদের ত্রি-বার্ষিক কমিটি গঠিত হয়েছে। রবিবার সকাল ১১টার সময় সংগঠনের অস্থায়ী কার্যালয় ঝিকরগাছা রাজাপট্টিতে যশোর জেলার সকল থানা থেকে সিনিয়র সংবাদকর্মী বা সাংবাদিকদের উপস্থিতে আলোচনা সভা অনুষ্ঠিত হয়। অনুষ্ঠানের সভাপতিত্ব করেন দৈনিক প্রজন্মের ভাবনা ঝিকরগাছা প্রতিনিধি সাংবাদিক মোঃ মতিয়ার রহমান।

আলোচনা শেষে সর্বসম্মতিক্রমে যশোর জেলা শাখার ৭ সদস্য বিশিষ্ট ত্রি-বার্ষিক কমিটিতে সভাপতি হয়েছেন দৈনিক প্রজন্মের ভাবনা পত্রিকার ঝিকরগাছা প্রতিনিধি সাংবাদিক মোঃ মতিয়ার রহমান, সহ সভাপতি হয়েছেন দৈনিক বিডি খবর, দৈনিক সত্যপাঠ ও জাতীয় সাপ্তাহিক আঁচড় পত্রিকার ঝিকরগাছা প্রতিনিধি সাংবাদিক আফজাল হোসেন চাঁদ, দৈনিক আগামীর কথা পত্রিকার স্টাফ রিপোর্টার সাংবাদিক মোঃ শরিফুল ইসলাম, দৈনিক ভোরের কলাম পত্রিকার ঝিকরগাছা প্রতিনিধি সাংবাদিক মিঠুন সরকার, সাধারণ সম্পাদক হয়েছেন দৈনিক সমাজের কথা চৌগাছা প্রতিনিধি সাংবাদিক প্রফেসর মোঃ অমেদুল ইসলাম, সাংগঠনিক সম্পাদক হয়েছেন এশিয়ান টেলিভিশনের অভয়নগর প্রতিনিধি সাংবাদিক তারিকুল রায়হান, অর্থ বিষয়ক সম্পাদক হয়েছেন দৈনিক বর্তমান কথা ও সাপ্তাহিক স্মৃতি পত্রিকার ঝিকরগাছা প্রতিনিধি সাংবাদিক ইমতিয়াজ আহমেদ শিপন।

ঝিকরগাছায় প্রায় চারশতাধিক রোগীদের সেনাবাহিনীর বিনামূল্যে স্বাস্থ্য সেবা প্রদান

ঝিকরগাছায় প্রায় চারশতাধিক রোগীদের সেনাবাহিনীর বিনামূল্যে স্বাস্থ্য সেবা প্রদান



আফজাল হোসেন চাঁদ : মুজিব জন্ম শতবার্ষিকী উপলক্ষ্যে যশোরের ঝিকরগাছাতে সেনাবাহিনীর ৭১ ফিল্ড এ্যাম্বুলেন্সের পরিচালনায় ও ৫৫ পদাতিক ডিভিশনের সার্বিক সহযোগিতায় বিনামূল্যে স্বাস্থ্য সেবা প্রদান করা হয়েছে।

রবিবার ঝিকরগাছা বিএম হাই স্কুলে বাংলাদেশ সেনাবাহিনীর ৫৫ পদাতিক ডিভিশনের ব্যবস্থাপনা চাজিং নাইন, ৭১ ফিল্ড এ্যাম্বুলেন্সে ও ডেন্টাল সেন্টার মেডিক্যাল ইউনিটের ডাক্তারের সমন্বয়ে সারাদিন ব্যাপী এই কার্যক্রমে উপজেলার প্রায় চারশতাধিক রোগীদের বিনামূল্যে চশমা, ব্রাশ, পেস্ট, ব্যবস্থাপত্র ও ঔষুধ প্রদান করা হয়েছে।

এসময় উপস্থিত ছিলেন বাংলাদেশ সেনাবাহিনীর লেফটেন্যান্ট কর্ণেল ডাক্তার ফাতেমা জেরিন খাঁন, লেফটেন্যান্ট কর্ণেল ফারহান মনির (পিএসসি), ক্যাপ্টেন সাম্স জুবায়ের, ডাক্তার মেজর সাফওয়ান ফারাবি, ডাক্তার ক্যাপ্টেন জিয়াউর রহমান, রুবানা জাহান, ডেন্টাল লেফটেন্যান্ট কর্ণেল ডাক্তার সাবরিনা সহ আরো অনেকে।

হবিগঞ্জে সরকারি ভাতার বই বিতরণ

হবিগঞ্জে সরকারি ভাতার বই বিতরণ



লিটন পাঠান, হবিগঞ্জ জেলা প্রতিনিধি: হবিগঞ্জ জেলার লাখাই উপজেলায় সরকারের সামাজিক নিরাপত্তা বেষ্টনী কর্মসূচির আওতায় নতুন করে আরো ২০৪ জন বয়স্ক, বিধবা, স্বামী নিগৃহীতা এবং অস্বচ্ছল প্রতিবন্ধীর মাঝে ভাতার বই বিতরণ করা হয়েছে। উপকার ভোগীদের হাতে তুলে দেয়া হয়েছে এক বছরের ভাতার টাকাও এ নিয়ে উপজেলাটিতে। সরকারি ভাতাভোগীর সংখ্যা হয়েছে প্রায় ৮ হাজার রোববার (২৩-আগস্ট) দুপুরে উপজেলা পরিষদ মিলনায়তনে।


এক অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত থেকে ভাতার বই বিতরণ করেন হবিগঞ্জ-৩ আসনের এমপি ও জেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি অ্যাডভোকেট মোঃ আবু জাহির। অনুষ্ঠানে সভাপতিত্ব করেন লাখাই উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা (ইউএনও) লুসিকান্ত হাজং বিশেষ অতিথি ছিলেন উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান, অ্যাডভোকেট মুশফিউল আলম আজাদ ভাইস চেয়ারম্যান আমিরুল ইসলাম আলম।


মহিলা ভাইস চেয়ারম্যান আলেয়া আক্তার লাখাই থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মোঃ সাইদুর রহমান প্রমুখ।

লাখাই উপজেলা সমাজসেবা কর্মকর্তা আফজালুর রহমান জানান, মোড়াকরি ইউনিয়নের নতুন ২০৪ জনের হাতে নতুন করে ভাতার কার্ড বিতরণ করা হয়েছে। এদের মধ্যে বয়স্ক ৬৯ স্বামী নিগৃহীতা ৫৫ এবং অস্বচ্ছল প্রতিবন্ধী ৮০ জন। 


লাখাই উপজেলাজুড়ে মোট সরকারি ভাতাভোগীর সংখ্যা প্রায় ৮ হাজার বলেও জানিয়েছেন তিনি। অনুষ্ঠানের প্রধান অতিথি এমপি আবু জাহির বলেন, প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা অস্বচ্ছল লোকদের জন্য সারাদেশে ভাতার ব্যবস্থা করে দিয়েছেন। যা অন্য কোন সরকার করেনি বঙ্গবন্ধু কন্যা শেখ হাসিনা মেহনতি মানুষের কষ্ট উপলব্ধি করেন। 


সেজন্যই বছর জুড়ে সকল শ্রেণি-পেশার অস্বচ্ছল লোকদের সুবিধা নিশ্চিত করে যাচ্ছেন। এ সময় করোনা ভাইরাস পরিস্থিতিতে সকলকে সরকারি স্বাস্থ্যবিধি মেনে চলতে অনুরোধ জানান।

সিরাজগঞ্জ ফেন্সিডিলসহ তিন মাদক কারবারীকে আটক করেছে র‌্যাব-১২

সিরাজগঞ্জ ফেন্সিডিলসহ তিন মাদক কারবারীকে আটক করেছে র‌্যাব-১২



 মাসুদ রানা সিরাজগঞ্জ জেলাপ্রতিনিধিঃসিরাজগঞ্জের রায়গঞ্জে মাদক বিরোধী অভিযান চালিয়ে ৪৭পিস ফেন্সিডিলসহ তিন মাদক কারবারীকে আটক করেছে র‌্যাব-১২ এর সদস্যরা। রবিবার (২৩ আগষ্ট) সকালে স্পেশাল কোম্পানী র‌্যাব-১২, সিরাজগঞ্জ এর ”ল” অফিসার  অতি: এসপি মোঃ আবুল কাশেম প্রেস বিজ্ঞপ্তির মাধ্যমে বিষয়টি নিশ্চিত করেন।


আটককৃতরা হলেন, রায়গঞ্জ উপজেলার ক্ষুদ্রদৌলতপুর গ্রামের ফজলার রহমানের ছেলে আনিছুর রহমান (২৬), মৃত গনি শেখে ছেলে এমদাদুল হক মিলন (২৬), মৃত নজির উদ্দিনের ছেলে শফিকুল ইসলাম (৩১)।


প্রেস বিজ্ঞপ্তির মাধ্যমে জানা যায়, গোপন সংবাদের ভিত্তিতে (২২ আগস্ট) ভোর রাতে উপজেলার ধানগড়া এলাকায় অভিযান চালিয়ে তাদেরকে আটক করা হয়।  এ সময় তাদের নিকট ৪৭ পিস ফেন্সিডিল, ৩টি মোবাইল, ৩টি সিমকার্ড ও নগদ সাড়ে ১০ হাজার টাকা উদ্ধার করা হয়। পরবর্তীতে উদ্ধারকৃত আলামত ও আটককৃত আসামীদের বিরুদ্ধে রায়গঞ্জ থানায় মাদক আইনে মামলা দায়ের করা হয়েছে।

নওগাঁর আত্রাইয়ে পৃথক অভিযানে গাঁজাসহ দুই মাদক কারবারি আটক

 নওগাঁর আত্রাইয়ে পৃথক অভিযানে গাঁজাসহ দুই মাদক কারবারি আটক



মোঃ ফিরোজ হোসাইন রাজশাহী ব্যুরোঃ নওগাঁর আত্রাইয়ে পৃথক অভিযানে গোপন সংবাদের ভিত্তিতে অভিযান চালিয়ে দুই মাদক কারবারিকে আটক করেছে পুলিশ।


আটককৃতরা হলো উপজেলার শাহাগোলা গ্রামের হিরো প্রামানিক এর ছেলে রাজু (৩০) ও উপজেলার নওদুলী গ্রামের অনীল প্রামাণিকের ছেলে অসিত কুমার (৩৭)।


রবিবার সকালে তাদের নওগাঁ জেল হাজতে প্রেরণ করা হয়েছে।

এ ব্যাপারে আত্রাই থানার অফিসার ইনচার্জ (ওসি) মোসলেম উদ্দিন ঘটনার সত্যতা নিশ্চিত করে জানান, শনিবার রাতে রাজু প্রামাণিক নামে এক মাদক কারবারি উপজেলার চৌরবাড়ি এলাকায় মাদকসহ অবস্থান করছে এমন সংবাদের ভিতিত্তে এসআই মোস্তাফিজুর ও এসআই প্রদীপ সঙ্গীয় ফোর্সসহ অভিযান চালিয়ে ৬০ গ্রাম গাঁজাসহ তাকে আটক করে।

অপরদিকে এস আই সালাউদ্দিন উপজেলার নওদুলী বাজার এলাকায় অভিযান চালিয়ে ৮০ গ্রাম গাঁজাসহ অসিত কুমারকে আটক করে।


পরে তাদের বিরুদ্ধে মাদকদ্রব্য নিয়ন্ত্রন আইনে থানায় পৃথক দুটি মামলা দায়ের করা হয়েছে এবং তাদের কে নওগাঁ জেল হাজতে প্রেরণ করা হয়েছে।

মহেশপুরে গাঁজা সহ ৩ মাদক ব্যবসায়ী আটক

মহেশপুরে  গাঁজা সহ ৩ মাদক ব্যবসায়ী আটক




খোন্দকার আব্দুল্লাহ বাশার, খুলনা ব্যুরো প্রধানঃঝিনাইদহের মহেশপুর থানার অফিসার ইনচার্জ (ওসি) মোহাম্মদ সাইফুল ইসলামের দিক নির্দেশনায় মাদক দ্রব্য উদ্ধার অভিযান পরিচালনাকালে এসআই(নিঃ) মোঃ আবুল কাশেম সংগীয় অফিসার ফোর্সসহ মহেশপুর পৌরসভাধীন বালিগর্ত(কুকুর পোতা) বাজারস্থ বটতলার সামনে মহেশপুর  টু চৌগাছা গামী পাকা রাস্তার উপর হইতে তিন পোটলায় ২(দুই) কেজি ৫০০(পাঁচশত) গ্রাম গাঁজা ও আসামীদের ব্যবহৃত একটি লাল রংয়ের পুরাতন পালসার মোটর সাইকেল সহ ২২আগষ্ট শনিবার  আসামী ১। মোঃ মানিক হোসেন(২৭), পিতা-মোঃ আবু সিদ্দিক, সাং-বসন্তপুর, ২। মোঃ সোহরাব হোসেন(৩২), পিতা-মোঃ আব্দুল আজিজ, সাং-দীঘিরপাড়, উভয় থানা-মণিরামপুর, ৩। মোঃ হ্নদয় হোসেন(১৯), পিতা-মোঃ রবিউল ইসলাম, সাং-চন্দ্রপুর, থানা-ঝিকরগাছা, সর্ব জেলা-যশোর এদেরকে আটক করে। এবিষয়ে ওসি সাইফুল জানান আটককৃতদের বিরুদ্ধে মহেশপুর থানায় মামলা হয়েছে এবং তাদেরকে কোট হাজতে পাঠানো হয়েছে।

চিলা ইউনিয়নে ১৫০ পরিবারের মাঝে করোনা ভাইরাস প্রতিরোধে স্বাস্থ্য সুরক্ষা সামগ্রী বিতরণ

চিলা ইউনিয়নে ১৫০ পরিবারের মাঝে  করোনা ভাইরাস প্রতিরোধে স্বাস্থ্য সুরক্ষা সামগ্রী বিতরণ



মোঃএরশাদ হোসেন রনি, মোংলা।       

 মোংলা উপজেলার চিলা ইউনিয়ন পরিষদে রবিবার দুপুর ২ টায়  কোভিড ১৯ মোকাবেলা ও  জনসচেতনতা বৃদ্ধির লক্ষ্যে  স্বাস্থ্য সুরক্ষায় দরিদ্র ও ঝুঁকিপূর্ণ ১৫০ পরিবারের মাঝে স্বাস্থ্য সুরক্ষা সামগ্রী বিতরন করা হয়। 


এসময় প্রধান অতিথি হিসাবে উপস্থিত ছিলেন মোংলা উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা কমলেশ মজুমদার, আরো উপস্থিত ছিলেন মোংলা উপজেলা মৎস্য কর্মকর্তা এ জেড এম তৌহিদুর রহমান,চিলা ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান গাজী আকবর হোসেন,ইউপি সদস্য নাছির হোসেন,ইউপি সদস্য নজরুল ইসলাম সহ পমূখ। 


 

প্রধান অতিথি কমলেশ মজুমদার তার বক্তব্যে বলেন করোনার হাত থেকে বাচার একমাত্র উপায় জনসচেতনতা। সবাই সচেতন ভাবে চলাফেরা করবেন।বাড়ির বাইরে বের হলে অবশ্যই মাস্ক ব্যবহার করবেন। বাইরে থেকে বাড়িতে ফেরার পর সবাই সাবান দিয়ে ভালো ভাবে হাত,মুখ পরিস্কার করবেন।বাইরে চলাফেরার ক্ষেত্রে অবশ্যই সামাজিক দুরত্ব বজায় রাখার জন্য সবাইকে অনুরোধ করেন।  


এর পর প্রধান অতিথি কমলেশ মজুমদার চিলা ইউনিয়নের জয়মনিরগোল  এ নদী ভাঙ্গনের    কারনে রাস্তা ভেঙ্গে গেছে ও নদীতে জোয়ারের  পানি বৃদ্ধির কারনে ঘের ও বাড়ী ঘর ক্ষতিগ্রস্ত হয়েছে তা পরিদর্শন করেন।

নওগাঁর নিয়ামতপুরে গাঁজার গাছসহ এক মাদক ব্যবসায়ী গ্রেফতার

নওগাঁর নিয়ামতপুরে গাঁজার গাছসহ এক মাদক ব্যবসায়ী গ্রেফতার



মোঃ ফিরোজ হোসাইন 

রাজশাহী ব্যুরো

নওগাঁর নিয়ামতপুরে গাঁজার গাছসহ এক মাদক ব্যবসায়ীক গ্রেফতার করেছে নিয়ামতপুর থানা পুলিশ।

রবিবার(২৩ আগষ্ট) ভোরে উপজেলার চন্দননগর ইউনিয়নের হর্ষইল কবিরাজপাড়া থেকে তাকে গ্রেফতার করা হয়।


থানা সূত্রে জানা যায়, রবিবার ভোরে গোপন সংবাদের ভিত্তিতে নিয়ামতপুর থানার অফিসার ইনচার্জ হুমায়ন কবির নেতৃত্বে পুলিশ অভিযান চালিয়ে উপজেলার চন্দননগর ইউনিয়নের হর্ষইল কবিরাজপাড়ার মৃত- মনছের কবিরাজের ছেলে আবুল কালাম আজাদ ওরফে ধলাকে (৪৫) গ্রেফতার করে। এ সময় তার বাড়ির উঠানে লাগানো গাঁজার গাছ (যার আনুমানিক ওজন (৬কেজি)উদ্ধার করা হয়।


এ বিষয়ে অফিসার ইনচার্জ হুমায়ন কবির বলেন, আবুল কালাম আজাদ দীর্ঘদিন যাবত বাড়ির উঠানে গাঁজার গাছ লাগিয়ে গাঁজা উৎপাদন, সেবন ও বিক্রয় করে আসছিল। তার বিরুদ্ধে নিয়মিত মামলা রুজু করা হয়েছে। সে পেশাদার মাদক ব্যবসায়ী । তাকে জেল হাজতে প্রেরণ করা হয়েছে।

নাটোরের রাস্তার এইচবিবি করন বলিদাঘাটিতে কাজের উদ্বোধন

 নাটোরের রাস্তার এইচবিবি করন বলিদাঘাটিতে  কাজের উদ্বোধন



 

রাজশাহী ব্যুরো

নাটোর বড়াইগ্রামের ৫নং  মাঝগাঁও ইউনিয়নের ৯নং ওয়ার্ডের বলিদাঘাটির রাস্তার এইচবিবি করন কাজের উদ্বোধন করেন ইউপি চেয়ারম্যান প্রভাষক  মোঃআব্দুল আলিম।


আজ রবিবার সকালে রাস্তার এইচবিবি করন কাজের উদ্বোধন করা হয়।


রবিবার সকালে ৫নং মাঝগাঁও ইউনিয়নের ৯নং ওয়ার্ড বাহিমালী(বলিদাঘাটি) রাস্তার এইচবিবি করন কাজের উদ্বোধন করেন।


২০২০-২০২১ অর্থ বছরের এলজিএসপি’র অর্থায়নে ৪ লক্ষ ৫০ হাজার টাকা বরাদ্দে ৪০২ ফুট রাস্তার কাজ বাস্তবায়ন করা হবে বলে জানানো হয়।


এসময় উপস্থিত ছিলেন, ৯ নং ওয়ার্ড সদস্য মোঃ জাহিদুল ইসলাম জাহিদ,বড়াইগ্রাম উপজেলা আওয়ামী লীগের সাবেক যুগ্ন-সাধারণ সম্পাদক মশগুল আজাদ,স্থানীয় আওয়ামী লীগ ও বিএনপি’র নেতৃবৃন্দসহ স্থানীয় গণ্যমান্য ব্যক্তিবর্গ।

সিরাজগঞ্জ রায়গঞ্জে ৫ (পাঁচ) জুয়াড়ী গ্রেফতার

 সিরাজগঞ্জ রায়গঞ্জে ৫ (পাঁচ) জুয়াড়ী গ্রেফতার




 মাসুদ রানা সিরাজগঞ্জ জেলাপ্রতিনিধিঃ মাননীয় পুলিশ সুপার সিরাজগঞ্জ জনাব হাসিবুল আলম বিপিএম এর দিক নির্দেশনায় রায়গঞ্জ থানার অফিসার ইনচার্জ জনাব মোঃ শহিদুল ইসলাম সাহেবের নেতৃত্বে রায়গঞ্জ থানার অফিসার ফোর্সের সহায়তায় গোপন সংবাদের ভিত্তিতে রায়গঞ্জ থানাধীন চকনুর এলাকায় অভিযান চালিয়ে প্রকাশ্য স্থানে টাকা দিয়ে জুয়া খেলার সময় জুয়ার সরঞ্জামসহ আসামি ১। মোঃ আব্দুল মজিদ, পিতা মৃত আব্দুল কুদ্দুস, ২। মোঃ শাহীন শেখ, পিতা মৃত আকবর আলী, ৩। মোঃ সিরাজুল ইসলাম, পিতা মোঃ আয়নাল শেখ, ৪। মোঃ মাসুদ রানা, পিতা মৃত কোরবান আলী, ৫। মোঃ আব্দুস সালাম, পিতা মোঃ সোহরাব আলী শেখ, সর্বসাং চকনুর, থানা- রায়গঞ্জ, জেলা- সিরাজগঞ্জদের গ্রেফতার করা হয় এবং তাদের বিরুদ্ধে নিয়মিত মামলা রুজু করা হয়।

কেশবপুর ও মণিরামপুরে অবৈধ ৯ ক্লিনিক ও ডায়াগনস্টিক সেন্টার বন্ধ আটক -১

কেশবপুর ও মণিরামপুরে অবৈধ ৯ ক্লিনিক ও ডায়াগনস্টিক সেন্টার বন্ধ আটক -১

 



মোরশেদ আলম

যশোর প্রতিনিধি

যশোরের কেশবপুর ও মণিরামপুর উপজেলায় অবৈধ ক্লিনিক, ডায়াগনস্টিক সেন্টারে অভিযান চালিয়েছে স্বাস্থ্য বিভাগ। এই সময় দুই উপজেলার মোট ৯টি অবৈধ প্রতিষ্ঠান বন্ধ ঘোষণা করা হয়। তথ্য নিশ্চিত করেছেন অভিযানের নেতৃত্বে থাকা যশোর সদর উপজেলা স্বাস্থ্য কর্মকর্তা ও সিভিল সার্জনের প্রতিনিধি ডা. মীর আবু মাউদ। এসময় আবদুস সামাদ ওরফে আজাদ নামে ভুয়া চিকিৎসককে আটক করা হলে মুচলেকা দিয়ে রক্ষা পান। তার প্রতিষ্ঠানের সাইনবোর্ড ও ব্যবস্থাপত্রের প্যাড পুড়িয়ে ফেলা হয়েছে।


ডা. আবু মাউদ জানান, বন্ধ ঘোষণা করা প্রতিষ্ঠানগুলো হলো মণিরামপুর উপজেলার অর্থোপেডিক ডা. নজরুল ইসলামের মালিকানাধীন রোকেয়া ক্লিনিক, কেশবপুর উপজেলার ডিজিটাল মেডিকেল ডায়াগনস্টিক সেন্টার, আরিয়ান ডায়াগনস্টিক সেন্টার, হীরা ডায়াগনস্টিক সেন্টার, কেশবপুর সার্জিক্যালের ডায়াগনস্টিক সেন্টার, মাইকেল ডায়াগনস্টিক সেন্টার, কপোতাক্ষ ডায়াগনস্টিক সেন্টার, রাইজিং প্যাথলজি সেন্টার ও পাইসল সেন্টার। তিনি জানান, সবগুলা প্রতিষ্ঠান অবৈধভাবে চলছিলো। এরমধ্যে ৫ প্রতিষ্ঠানের লাইসেন্স নেই। মালিকরা অনলাইনে আবেদনও করেননি। বাকি ৪ প্রতিষ্ঠানের লাইসেন্সের মেয়াদ উত্তীর্ণ। চিকিৎসাসেবা ও পরীক্ষা নিরীক্ষার নামে সেখানে প্রতারণা চলে আসছিলো। সেখানে চিকিৎসক ও এমটি ল্যাব নেই। প্যাথলজি কক্ষের অবস্থাও খুব খারাপ। ডা. মাউদ আরো জানান, পাইলস সেন্টারে আব্দুস সামাদ আজাদ চিকিৎসক পরিচয়ে মানুষের অপচিকিৎসা করে আসছিলো। অভিযান চালিয়ে তাকে আটক করা হয়। এসময় তিনি চিকিৎসকের কোন সার্টিফিকেট দেখাতে পারেননি। তার প্রতিষ্ঠানের লাইসেন্স নেই। আব্দুস সামাদ আর কোনদিন চিকিৎসসক পরিচয়ে মানুষের প্রতারণা করবেন না এমন মুচলেকায় তাকে ছেড়ে দেয়া হয়। তার প্রতিষ্ঠানের সাইনবোর্ড ও ভুয়া ব্যবস্থাপত্র আগুনে পুড়িয়ে দেয়া হয়েছে। অভিযান টিমে উপস্থিত ছিলেন মণিরামপুর উপজেলা স্বাস্থ্য ও পরিবার পরিকল্পনা কর্মকর্তা ডা. শুভ্রা রানী, কেশবপুর উপজেলা স্বাস্থ্য ও পরিবার পরিকল্পনা কর্মকর্তা ডা. আলমগীর কবির, আবাসিক মেডকিল অফিসার ডা. জাহিদ,সদর উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সের মেডিকেল অফিসার ডা. নাসিম ফেরদৌস, স্যানেটারি কর্মকর্তা পার্থ প্রতীম লাহিড়ী প্রমুখ। পুলিশ সদস্য অভিযানে সহযোগিতা করেন।


বশেমুরবিপ্রবি কম্পিউটার চুরি, তদন্ত কমিটিতে রদবদল

 বশেমুরবিপ্রবি কম্পিউটার চুরি, তদন্ত কমিটিতে রদবদল




সুমন,বশেমুরবিপ্রবি সংবাদদাতাঃ বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়ের ( বশেমুরবিপ্রবি) কেন্দ্রীয় লাইব্রেরিতে কম্পিউটার চুরির ঘটনায় গঠিত তদন্ত কমিটির সদস্যের রদবদল করা হয়েছে।এ তালিকায় নতুন করে যুক্ত হলেন দুই সদস্য।


আজ ২৩ আগস্ট বিশ্ববিদ্যালয়ের রেজিস্টার প্রফেসর ড. নূরউদ্দিন আহমেদ সাক্ষরিত এক বিজ্ঞপ্তিে এই পরিবর্তনের কথা জানানো হয়। বিজ্ঞপ্তিতে বলা হয়,ঈদ - উল- আযহার ছুটি থাকাকালীন লাইব্রেরীতে চুরির ঘটনায় গঠিত তদন্ত কমিটির দুই সদস্য স্বেচ্ছায় পদত্যাগ ও একজনকে অব্যাহতি দেবার পর নতুন করে দুইজন কে অর্ন্তভুক্ত করা হয়।


নতুন করে যুক্ত হওয়া দুইজন হলেন বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষার্থী উপদেষ্টা ড. মো. শরাফত আলী এবং বশেমুরবিপ্রবির (পউও) উপপরিচালক জনাব তুহিন মাহমুদ।


আগেই জানানো হয়েছে সুষ্ঠু তদন্তের জন্য তদন্ত কমিটির অন্যতম সদস্য সহকারী রেজিস্টার নজরুল ইসলামকে অব্যাহতি প্রদান করা হয়।এরপর অবশ্য দুই সদস্য ব্যক্তিগত কারন দেখিয়ে স্বেচ্ছায় পদত্যাগ করেন।পদত্যাগকৃত দুই সদস্য হলেন বিশ্ববিদ্যালয় প্রকৌশলী জনাব এস্কান্দার আলী এবং লাইব্রেরিয়ান( ভারপ্রাপ্ত)  নাছিরুল ইসলাম।


উল্লেখ্য, ঈদ - উল - আযহার ছুটি চলাকালীন বশেমুরবিপ্রবির কেন্দ্রীয় লাইব্রেরি থেকে ৪৯ টি কম্পিউটার চুরি হয়।এরপর ৯ আগস্ট ২০২০, আইন অনুষদের ডিন আব্দুল কুদ্দুস মিয়াকে সভাপতি করে তদন্ত কমিটি গঠন করা হয়েছিল।

বাবুখালীতে কাঁচা রাস্তার বেহাল দশা, স্বেচ্ছাশ্রমে রাস্তা মেরামত করল এলাকাবাসী

 বাবুখালীতে কাঁচা রাস্তার বেহাল দশা, স্বেচ্ছাশ্রমে রাস্তা মেরামত করল এলাকাবাসী




মো:কুতুবুল আলম,

মহম্মদপুর(মাগুরা) 


মহম্মদপুর উপজেলার বাবুখালী ইউনিয়নের রামকৃষ্ণপুর একটি রাস্তা বেহাল দশা। তাই বিগত কয়েকবছর ধরে দুর্ভোগ পোহাতে হচ্ছে এলাকাবাসীকে। 

সড়কটির মধ্যবর্তী কিছু অংশ দীর্ঘদিন ধরে বেহাল অবস্থার সৃষ্টি হয়ে জনসাধারণের চলাচলের প্রায় অনুপযোগী হয়ে পড়েছে। একটু বৃষ্টি হলেই সড়কটিতে পানি জমে কাঁদার সৃষ্টি হয়। এতে চরম দুর্ভোগ পড়েন সাধারণ মানুষ।


এ রাস্তা দিয়ে প্রতিদিন স্কুল-কলেজের ছাত্রছাত্রীসহ হাজারও মানুষ আসা-যাওয়া করেন। 


অবশেষে রামকৃষ্ণপুর গ্রামের মুরুব্বী ও যুবকদের উদ্যোগে রাস্তাটি সংস্কার করার জন্য উদ্যোগ নেওয়া হয়েছে। 

গতকাল শনিবার (২৩ আগষ্ট) ওই এলাকার যুবকরা কাঁচা রাস্তাটি সংস্কার করেছেন।

দিশেহারা হয়ে ঢাকা ফিরছেন জবি শিক্ষার্থীরা

দিশেহারা হয়ে ঢাকা ফিরছেন জবি শিক্ষার্থীরা




জবি প্রতিনিধিঃ 

করোনা মহামারী বিস্তারের শুরু থেকেই বন্ধ রয়েছে সব ধরনের শিক্ষা প্রতিষ্ঠান। করোনা ভাইরাসের সংক্রমণ রোধে অনির্দিষ্টকালের জন্য ক্লাস-পরীক্ষা বন্ধ রেখেছে জগন্নাথ বিশ্ববিদ্যালয় ও। ফলে বিশ্ববিদ্যালয়ের অধিকাংশ শিক্ষার্থীই নিজ নিজ বাড়িতে অবস্থান করে আসছেন। সম্প্রতি অনলাইন ক্লাস শুরু হওয়ায় গ্রামে ইন্টারনেট সমস্যার কারণে বিশ্ববিদ্যালয়ের অনেক শিক্ষার্থীই ফিরতে শুরু করেছেন পিছু টানে। অনেক শিক্ষার্থীর দাবি টিউশনি ও পার্ট টাইম জব করেই পড়াশোনা চালাতে হতো, কিন্তু করোনাভাইরাসের কারণে বাসায় চলে গিয়ে এখন আর্থিক সংকটে পরেছেন অনেকে।


জগন্নাথ বিশ্ববিদ্যালয়ের (জবি) গণযোগাযোগ ও সাংবাদিকতা বিভাগের শিক্ষার্থী আরিফুল ইসলাম বলেন, মহামারীর শুরুতেই গ্রামের বাড়ি যশোর চলে এসেছি। টিউশনি ও পার্ট টাইম জব করে পড়াশোনা চালাতে হতো। কিন্তু বাসায় এসে এখন সংকটে পরেছি। তবে টিউশন ছুটে যাবার ভয়ে আমাকে আবার ঢাকায় ফিরতে হচ্ছে।


খোঁজ নিয়ে জানা যায়, বিশ্ববিদ্যালয়ের বেশির ভাগ শিক্ষার্থী টিউশনি বা পার্ট টাইম চাকরি করে নিজের খরচ চালায়। অনেকে আবার পরিবারকেও আর্থিকভাবে সহায়তা করেন। ফলে এই করোনাকালে তাঁরা বিপদে পড়েছেন। অনেক শিক্ষার্থীর দাবি, টিউশনি করেই পড়াশোনা সহ সব খরচ চালাতাম। এখনতো টিউশনি নাই, ফলে ইন্টারনেট কিনে অনলাইন ক্লাস করতে অনেক দূর্ভোগ পোহাতে হচ্ছে।


নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক জগন্নাথ বিশ্ববিদ্যালয়ের ম্যানেজমেন্ট স্টাডিজ বিভাগের চতুর্থ বর্ষের এক শিক্ষার্থী আক্ষেপ করে বলেন, ‘করোনার কারণে আমার সব টিউশনি চলে গেছে। নতুন টিউশনির খোঁজে এবং বন্ধুদের ডিভাইসের সাহায্য নিয়ে অনলাইন ক্লাস করার জন্য ঢাকায় এসেছি। এখন পর্যন্ত কোনো আশা খুঁজে না পেয়ে আপাতত একটা টিউশনি করে চলছি"।


পরিসংখ্যান বিভাগের শিক্ষার্থী সোহানুর রহমান সোহান বলেন, ‘প্রতিদিন পাঁচ কিলোমিটার দূরে গিয়ে অনলাইন ক্লাসে অংশ নিতে হয়। এই অবস্থায় দ্রুত ক্যাম্পাসে ফেরা ছাড়া কোনো উপায় নেই।’ এছাড়া লকডাউন পরিস্থিতি কিছুটা শিথিল হওয়ায় অনেক শিক্ষার্থী ঘরবন্দি জীবনের একঘেয়েমি কাটাতে ঢাকায় ফিরে এসেছেন।


আরো কয়েকজন শিক্ষার্থী জানান, এলাকায় দ্রুতগতির ইন্টারনেট সংযোগ নেই। অথচ অনলাইনে প্রায় প্রতিদিনই ক্লাস হচ্ছে, অ্যাসাইনমেন্ট নেওয়া হচ্ছে। নিয়মিত অনলাইন ক্লাসে অংশ নেওয়ার জন্য ঢাকায় ফিরে এসেছেন।


উল্লেখ্য যে, এর আগে গণপ্রজাতন্ত্রী বাংলাদেশ সরকারের শিক্ষা মন্ত্রণালয়ের সিদ্ধান্ত অনুসারে করোনা ভাইরাস প্রতিরোধের সতর্কতা হিসেবে ১৭ মার্চ থেকে ৩১ মার্চ পর্যন্ত জগন্নাথ বিশ্ববিদ্যালয়ের সকল বিভাগের ক্লাস ও পরীক্ষা বন্ধ রাখার নোটিশ দেয়া হয় এবং পরবর্তীতে তা সরকারী নির্দেশনায়ই ৯ এপ্রিল পর্যন্ত বর্ধিত করা হয়। পরবর্তীতে ৯ এপ্রিল করোনা ভাইরাস সঙ্কায় জগন্নাথ বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষার্থীদের ক্লাস ও পরীক্ষা পরবর্তী নি‌র্দেশ না দেওয়া পর্যন্ত বন্ধ রাখার নোটিশ দেয়া হয়। এছাড়া জবি ক্যাম্পাসে জরুরি বা বিশেষ প্রয়োজন ছাড়া প্রবেশাধিকারেও নিষেধাজ্ঞা আরোপ রয়েছে।

বিভিন্ন দাবীতে প্রধানমন্ত্রী বরাবর প্রথমিক বিদ্যালয়ের শিক্ষকদের স্মারকলিপি প্রদান

বিভিন্ন দাবীতে প্রধানমন্ত্রী বরাবর প্রথমিক বিদ্যালয়ের শিক্ষকদের স্মারকলিপি প্রদান





মামুনুর রশিদ,দিনাজপুর প্রতিনিধিঃ জাতীয়করণকৃত প্রাথমিক বিদ্যালয়ের শিক্ষকদের বেতন নির্ধারণের জন্য চাকুরীকাল গণনা ও অন্যান্য আর্থিক সুবিধাদির প্রাপ্যতায় চলতি বছরের ১২ এপ্রিল অর্থমন্ত্রণালয় কর্তৃক জারীকৃত পত্রটি প্রত্যাহারের দাবীতে প্রধানমন্ত্রী বরাবর জেলা প্রশাসকের মাধ্যমে স¥ারকলিপি প্রদান।

আজ রোববার বেলা ১২টায় জেলা প্রশাসক কার্যালয়ে শিক্ষকরা উক্ত স্মারকলিপিটি অতিরিক্ত জেলা প্রশাসক (শিক্ষা ও আইসিটি) সানিউল ফেরদৌসের নিকট প্রদান করেন। এর আগে জাতীয়করণকৃত প্রাথমিক বিদ্যালয়ের শিক্ষক মহাজোট দিনাজপুর জেলা শাখার ব্যানারে স্বাস্থ্যবিধি মেনে একটি মানববন্ধন ও পথসভা করা হয়।

এ সময় শিক্ষকরা অভিযোগ করেন অধিগ্রহনকৃত বে-সরকারী প্রাথমিক শিক্ষকদের জোষ্ঠ্যতা, পদোন্নতি, সিলেকশন গ্রেড এবং প্রযোজ্য টাইম স্কেল প্রাপ্যতার কথা থাকলেও তা প্রদান করা হচ্ছেনা। এছাড়াও প্রাধান শিক্ষক ও সহকারি শিক্ষকদের প্রাপ্ত টাইম স্কেলের জটিলতা নিরসন না করে চলতি বছরের ১২ এপ্রিল অর্থমন্ত্রণালয় কর্তৃক জারীকৃত টাইম স্কেল কর্তনের পত্রটি দ্রুত বাতিলের দাবী জানান শিক্ষকরা।

কোটচাঁদপুরে গলায় উরনা পেচিয়ে গৃহবধূর আত্মহত্যা

 কোটচাঁদপুরে গলায় উরনা পেচিয়ে  গৃহবধূর আত্মহত্যা


খোন্দকার আব্দুল্লাহ বাশার,খুলনা ব্যুরো প্রধান:ঝিনাইদহের কোটচাঁদপুর উপজেলায় জান্নাতুল ফেরদৌসী স্বর্না (১৮) নামে এক গৃহবধূ গলায় ওড়না পেচিয়ে  আত্মহত্যা করেছে। বরিবার দিবাগত   (২৩ আগস্ট)মধ্যরাতে উপজেলার পৌরসভার ২ নং ওয়ার্ডের ফুলবাড়ি রেলগেট পাড়ায় এ ঘটনা ঘটে। নিহত ব্যক্তি ওই ওয়ার্ডের সুমন ইসলামের স্ত্রী।

ঘটনার সূত্রে জানা যায়, ১ বছর আগে কোটচাঁদপুর পৌর ২ নং ওয়ার্ডের মৃত আবুবকর সিদ্দিক(এটি)"র ছেলে মোঃ সুমন ইসলামের সাথে উক্ত বলুহর ইউনিয়নের পারলাট গ্রামের ইউসুফ আলীর মৃত স্বর্নার সাথে বিবাহ হয়। বিয়ের পর থেকেই পারিবারিক কলহের সৃষ্টি হতে থাকে। তারই সূত্র ধরে ২৩ (আগস্ট) আনুমানিক রাত ৩টার দিকে নিজ শয়ন কক্ষে গলায় ফাঁস দিয়ে আত্মহত্যা করে গৃহবধূ।

পরে বাড়ির লোকজন টের পেয়ে তাকে উদ্ধার করে স্থানীয় এক ডাক্তার ডেকে নিয়ে আসলে মারা যাওয়ার বিষয়টি নিশ্চিত করে।

তদন্ত কর্মকর্তা এস আই আব্দুল মান্নান  জানান প্রাথমিক তদন্তে নিহত গৃহবধূর গলায় আঘাতের চিহ্ন পাওয়া গেছে।


এ বিষয়ে কোটচাঁদপুর থানার অফিসার ইনচার্জ মাহবুবুল আলম ঘটনাস্থল পরিদর্শন করে সত্যতা নিশ্চিত করেছেন।

আর কত দংশিত মানুষের আহাজারি শুনলে আপনাদের চোঁখ খুলবে?

আর কত দংশিত মানুষের আহাজারি শুনলে আপনাদের চোঁখ খুলবে?




সম্রাট হোসেন, শৈলকুপা উপজেলা (ঝিনাইদহ) প্রতিনিধিঃঝিনাইদহ জেলার শৈলকুপা উপজেলায় সাঁপের দংশনে মারা যাওয়া এখন যেন রুটিনে পরিনত হয়েছে। দেখার কেউই নেই,,সিভিল সার্জন নিরব,,আর ঢাকার আলিশানে ঢু-মারে এই সমাজের কিছু মানুষ। শুধু ভোটের সময় রাজনৈতিক ওয়াদা পেয়েই খুশি থাকতে হয় সাধারণ মানুষের। আর কত দংশিত হলে আপনাদের চোঁখের নজরে পড়বে এই দংশিত মানুষের আহাজারি।আর কত মায়ের বুক খালি হবে। তার পর প্রশাসনের ঘুম ভাঙ্গবে তা কেও জানে না। আজ রবিবার উপজেলার চতুরিয়া গ্রামের রাফি (৫) এবং একই উপজেলার নাকোইল গ্রামের বিল্লাল হোসেনের ছেলে তাহসিন(১০) মারা গেছে। সর্বশেষ এক মাসে প্রায় ২০ জন সাপের কামড়ে মারা গেছে।এলাকা বাসি স্বাস্থ্য কর্মকর্তা ও জেলা স্বাস্থ্য কর্মকর্তা কে বদলি করার জন্য অনুরোধ করেছে।

সৌদি আরব সাগরে ট্রলার ডুবিতে ২ ভাইয়ের মৃত্যু

সৌদি আরব সাগরে ট্রলার ডুবিতে ২ ভাইয়ের মৃত্যু



আন্তর্জাতিক:

সিলেটের ফেঞ্চুগঞ্জ উপজেলার দুই ভাইয়ের মৃত্যু হয়েছে সৌদি আরবে আল লেছব শহরের সাগরে ফিশিং ট্রলার ডুবিতে। 


নিহতরা হলেনঃ-

উপজেলার ছত্তিশ গ্রামের ইরফান আলীর ছেলে মোহাম্মদ অসিম (৪২) ও উসমান আহমদ (৩৩)। যদিও তাদের মধ্যে সৌদি আরবের নৌ-পুলিশ উসমানের লাশ উদ্ধার করেছে , কিন্তু নিখোঁজ রয়েছে অসীমের লাশ। 


সৌদি আরবের গম্বুজ শহরের নিজ বাসা থেকে গত শুক্রবার স্থানীয় সময় ভোর ৫টায় মাছ ধরতে ট্রলার নিয়ে সাগরে অসিম ও উসমান। বাকি ট্রলারগুলো এলেও ফিরে আসেনি অসীম ও উসমানদের ট্রলার। পরে তাদের বড় ভাই জসিম মিয়া সাগরের তীরে গিয়ে তাদের খুঁজতে থাকেন। কিন্তু কোন খোঁজ খবর না পেয়ে তিনি বিষয়টি পুলিশকে জানান।


সৌদি নৌ-পুলিশ দ্রুত অভিযান শুরু করে শনিবার সকালে  উসমানের মৃতদেহ উদ্ধার করতে সক্ষম হলেও শেষ সংবাদ পাওয়া পর্যন্ত অসিম কে উদ্ধার করা সম্ভব হয়নি এখনো।

জন্মদিনে কেক ও মিষ্টি নিয়ে এমপি মনোরঞ্জন শীল গোপাল আসবেন এটা স্বপ্নের মতো

জন্মদিনে কেক ও মিষ্টি নিয়ে এমপি মনোরঞ্জন শীল গোপাল আসবেন এটা স্বপ্নের মতো



মামুনুর রশিদ,দিনাজপুর প্রতিনিধি ॥ জোড়া লাগা অবস্থায় জন্ম নেয়ার পর সফল অস্ত্রোপচারের মাধ্যমে আলাদা হওয়া মনি-মুক্তার জন্ম দিনে কেক ও মিষ্টি নিয়ে গিয়ে তাদের জন্মদিনে অফুরন্ত আনন্দ দিলেন দিনাজপুর-১ আসনের সংসদ সদস্য মনোরঞ্জন শীল গোপাল। সঙ্গে আনন্দ ঝড়িয়ে পড়ে গ্রাম জুড়ে। ছুটে আসে পুরো গ্রামবাসী।

১১ বছর আগে জোড়া লাগা অবস্থায় জন্ম নেয়া শিশু মনি-মুক্তার জন্মদিনে দিনাজপুরের বীরগঞ্জের ৩ নং শতগ্রাম ইউনিয়নের পালপাড়া গ্রামে। মনি-মুক্তা ও তার বাবা মাসহ কেককেটে জন্মদিন পালন। আচমকা সংসদ সদস্যের উপস্থিতিতে পরিবার জুড়ে ছড়িয়ে পড়ে অফুরন্ত আনন্দ।  

মনি-মুক্তা বাবা জয় প্রকাশ পাল বলেন, মনি-মুক্তার জন্মদিনে সংসদ সদস্য মনোরঞ্জন শীল গোপাল কেক নিয়ে আসবেন এক স্বপনেও ভাবতে পারিনি। সত্যি মেয়ে গুলো আমাদের জন্য আর্শিবাদ। 

মনি-মুক্তা এখন বাড়ির পাশে পালপাড়া সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ে পঞ্চম শ্রেণীতে অধ্যয়নরত। তারা এবার পিএসসি পরীক্ষায় অংশ গ্রহণ করবে।

দিনাজপুরের বীরগঞ্জ উপজেলার পালপাড়ায় মনি-মুক্তা বাবা জয় প্রকাশের বাড়ি। ২০০৯ সালের আজকের এই দিনে তার স্ত্রী কৃষ্ণা রানী জোড়া লাগা অবস্থায় জন্ম দেন দুই মেয়েশিশুকে। জন্মের পর হাসপাতাল কর্তৃপক্ষ তাদের নাম রাখেন মনি ও মুক্তা। জন্মের ছয় মাস পর ২০১০ সালের ২২ ফেব্রুয়ারি সফল অস্ত্রোপচারের মাধ্যমে মনি-মুক্তাকে আলাদা করা হয়।

বেনাপোলে নদীতে সাঁতার কাটতে গিয়ে ডুবে যাওয়া কিশোরের লাশ উদ্ধার

বেনাপোলে নদীতে সাঁতার কাটতে গিয়ে ডুবে যাওয়া কিশোরের লাশ উদ্ধার

 



তুহিন হোসেন, বেনাপোল প্রতিনিধি:নদীতে সাঁতার কাটতে গিয়ে নিখোঁজ হওয়া ৭ ঘন্টা পর ইকরামুল ইসলাম (১২) নামে এক কিশোরের লাশ উদ্ধার করেছে ফায়ার সার্ভিসের ডুবুরি দল। বেনাপোল ফায়ার সার্ভিস ও স্থানীয়রা উদ্ধার তৎপরতা চালিয়ে ব্যর্থ হওয়ার ৭ ঘন্টা পর খুলনা ফায়ার সার্ভিসের ডুবুরি দল লাশটি উদ্ধার করে। ঘটনাটি ঘটেছে বেনাপোল পোর্ট থানার ধান্যখোলা – ঘিবা জোড়া ব্রিজের নীচে কোদলা নদীতে।

গত শনিবার (22 আগষ্ট) বেলা ১ টার সময় কোদলা নদীতে সে বন্ধুদের সাঁতার কাটতে গিয়ে হারিয়ে যায়। নিহত ইকরামুল ইসলাম বেনাপোল পোর্ট থানার ধ্যান্যখোলা দক্ষিনপাড়া গ্রামের ইমামুল হকের ছেলে।এদিকে কোদলা নদীর দুপারে কয়েক হাজার নারী পুরুষ উদ্ধার কাজ দেখার জন্য ভীড় জমিয়ে ছিলো। অপরদিকে স্বজনদের কান্নায় আকাশ বাতাস ভারী হয়ে উঠে। ইকরামুলের মায়ের একটি আর্তনাত আমার ছেলেকে এনে দেও।

স্থানীয়রা জানায়, ইকরামুল, রনি ও হাবিবুল্লাহ কোদলা নদীর ব্রীজ থেকে লাফিয়ে সাঁতার কেটে দক্ষিন দিকে যায়। সেখান থেকে ফেরার সময় রনি ও হাবিবুল্লাহ ব্রীজের উপর উঠলেও ইকরামুল উঠতে পারেনি। এসময় তার বন্ধুরা দেখতে না পেয়ে খোঁজাখুঁজি করে গ্রামের লোকজনদের খবর দেই। এরপর গ্রামের লোকজন এসে চেষ্টা করে তাকে উদ্ধার করতে পারেনি।

আজিজুল নামে ঘিবা গ্রামের এক যুবক বলে আমরা হারিয়ে যাওয়া কিশোরকে উদ্ধার করতে না পেরে বেনাপোল ফায়ার সার্ভিস ইউনিটকে খবর দেই।

বেনাপোল ফায়ার সার্ভিসের ইউনিট প্রধান তৌহিদুর রহমান সুমন বলেন, নদীতে সামান্য স্রোত থাকায় আমরা লাশটি উদ্ধার করতে ব‍্যর্থ হয়। পরে খুলনা থেকে ডুবুরি দল এসে সন্ধ্যা ৭ টার সময় ইকরামুলের লাশটি উদ্ধার করেছে।

ক্লোন ক্যান্সার থেকে বাঁচতে চাই জেসমিন আক্তার

ক্লোন ক্যান্সার থেকে বাঁচতে চাই জেসমিন আক্তার




তাহের খাঁন, কোঁটচাদপুর(ঝিনাইদহ)

ক্লোন ক্যান্সার থেকে বাঁচতে চাই জেসমিন আক্তার

নাম--জেসমিন আক্তার। 

পিতা-- মোঃ জাহাঙ্গীর আলাম‌, পেশা-- রিক্সা চালক।

বাসা-- দুধসরা ভবানীপুর(কোটচাঁদপুর পৌরসভা)

থানা--কোটচাঁদপুর, জেলা--ঝিনাইদহ। 


মেয়েটি কোটচাঁদপুর বালিকা মাধ্যমিক বিদ্যালয় থেকে ২০১৮ সালে SSC পাশ করেন।

বর্তমান কোটচাঁদপুর মহিলা কলেজের একজন  HSC পরীক্ষার্থী।

মেয়েটির বাবা একজন রিক্সা চালক হওয়া সত্ত্বেও, লেখাপড়ার প্রতি তাঁর অদম্য ইচ্ছা শক্তি তাকে আটকে রাখতে পারেনি। শত কষ্টের মাঝেও পড়ালেখা চালিয়ে যাচ্ছিলেন।

ভাগ্যের কি নির্মম পরিহাস, বেশ কিছুদিন অসুস্থ থাকার পর আজ জানা গেল জেসমিন ক্লোন ক্যান্সারে আক্রান্ত। 


বর্তমানে খুলনা ন্যাশনাল হসপিটালে সাধারন রোগীদের সাথে আছেন। আর্থিক অসচ্ছলতার কারণে ভর্তি হতে পারছে না ভালো কোন হসপিটালে।

একজন রিক্সা চালক বাবার পক্ষে সম্ভব হচ্ছে না মেয়েকে এতো বড় একটা রোগের চিকিৎসা করাতে।

বাঁচার অধিকার সবার আছে, একটা ফুল অঙ্কুরেই বিনষ্ট হতে পারেনা,জেসমিন ফিরে পেতে চাই তার স্বাভাবিক জীবন।

জেসমিনের বাবা জানান, ডাক্তার বলেছে ৭ দিনের মধ্যে তাকে অপারেশন করতে হবে। অপারেশন, ঔষধ, ও অন্যান্য খরচ সহ সর্বোনিম্ন ৫ লক্ষাধিক অর্থ ব্যয় হতে পারে।

 

মানুষ মানুষের জন্য, তাই আসুন আমরা একটি ফুল কে বাঁচিয়ে রাখি, হাসি ফোঁটায় মেয়েটির মুখে । 


জেসমিন নতুন করে জীবনটা ফিরে পাওয়ার জন্য নিজেই আপনাদের কাছে আর্থিক সাহায্যের আবেদন করেছে।

আসুন যার যা সামর্থ্য আছে তাই দিয়ে জেসমিনের পাশে দাঁড়ায়।

হয়তো আপনাদের দেওয়া কিছু টাকায় বেঁচে যেতে পারে জেসমিনের প্রাণ।


সঠিক তথ্য জানতে প্রয়োজনে ফোন করতে পারেন,

জেসমিনের বড় বোন।

মোছাঃ দোলা আক্তার

মোবাঃ--01911875746 


বাঁচার অধিকার সবারই আছে

বিপদ যত প্রতিকূল,

অর্থের অভাবে যেন ঝরে না যায়

জেসমিনের মত হাজারো ফুল!  


আসুন আমরা জেসমিনের পাশে দাড়ায়.

মাদক মুক্ত ব্রামণবাড়িয়া চাই’র মাসিক আলোচনা সভা অনুষ্ঠিত

 মাদক মুক্ত ব্রামণবাড়িয়া চাই’র মাসিক আলোচনা সভা অনুষ্ঠিত

এস.এম অলিউল্লাহ ব্রাহ্মণবাড়িয়া প্রতিনিধিঃযে মুখে মা–সে মুখে মাদককে বলি বা।এই শ্লোগানকে সামনে রেখে মাদকের বিরুদ্ধে গণসচেতনতা সৃষ্টির পাশাপাশি –মাদক মুক্ত ব্রাহ্মণবাড়িয়া গড়ার দৃঢ় প্রত্যয়ে কাজ করে যাওয়া মাদক বিরুধী সামাজিক সংগঠন –মাদক মুক্ত ব্রাহ্মণবাড়িয়া চাই সংগঠনের মাসিক আলোচনা সভা অনুষ্টিত হয়েছে । আজ ২২শে আগষ্ট শনিবার শহরের গোকর্ণ ঘাট গ্রামে সংগঠনের প্রতিষ্ঠাতা ও সভাপতি মাহফুজুর রহমান পুষ্প’র সভাপতিত্বে ও সাধারণ সম্পাদক- মোঃ শাহ আলম এর সঞ্চালনায়-আলোচনায় সভায় মাদকের ক্ষতিকর দিক ও কুফল তুলে ধরা হয় । গোকর্ণ ঘাট সহ আশপাশের এলাকায় মাদকের ব্যাপক বিস্তার ঘটেছে বলে জানান আলোচক বৃন্দ – উক্ত সভায় প্রধান আলোচক হিসাবে উপস্থিত ছিলেন- নদী নিয়ে কাজ করা সামাজিক সংগঠন- নোঙর-এর ব্রাহ্মণবাড়িয়া জেলা শাখার সভাপতি- মোঃ শামীম আহমেদ, আখাউড়া প্রেস ক্লাবের সভাপতি- মোঃ জুয়েল মিয়া, অন্যান্যদের মাঝে আরো উপস্থিত ছিলেন- নোঙর-এর অর্থ বিষয়ক সম্পাদক- শিপন কর্মকার, মাদক মুক্ত ব্রাহ্মণবাড়িয়া চাই’র সহ সভাপতি- মাহফুজুল রিপন, যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক- মোঃ মুরাদ হোসেন, সহ সাধারণ সম্পাদক- আশরাফুল হাসান তপু, মোঃ অলি উল্লাহ, মোঃ সাইদুর রহমান, মোঃ সোহরাফ, সহ সাংগঠনিক সম্পাদক- এম এম ফরহাদ ইসলাম, দপ্তর সম্পাদক- মোঃ রফিকুল ইসলাম, কোষাধক্ষ্য-জুনাঈদ মুহাম্মদ, ক্রীয়া সম্পাদক-এইচ এম এরশাদ- সহ ক্রীয়া সম্পাদক-সোহেল রানা, মানবাধিকার বিষয়ক সম্পাদক  -ইসহক আল ফোরকান, ধর্ম বিষয়ক সম্পাদক- মোঃ এনামুল হক আরিফ, মাওঃ আহমেদ মুসা, শিক্ষা বিষয়ক সম্পাদক  - মোঃ সানা উল্লাহ, শ্রম বিষয়ক সম্পাদক –মহব্বত আল এহসান, আপ্যায়ন বিষয়ক সম্পাদক  - মাওঃ শহিদুল ইসলাম কাজল, অনুষ্ঠান  বিষয়ক সম্পাদক-  জুলকার নাঈন, কার্যকরী সদস্য- মোঃ সানা উল্লাহ, মোঃ মোক্তার হোসেন, মোঃ শরীফ আহমেদ, সদস্য মুমিনুল হাসান তাজ, তানজিমুল হাসান, মোঃ ইয়ারফ, মোঃ জসীম উদ্দিন, মোঃ ফারুক, মোঃ রুপন আহমেদ, মোঃ আনোয়ার হোসেন প্রমুখ , আলোচনা সভার সমাপনী বক্তব্যে সংগঠনের সভাপতি –মাহফুজুর রহমান পুষ্প বলেন- মাদকের ভয়াভহতা এলাকায় চরম আকার ধারন করেছে- তিনি বলেন মাদকের নির্মূলে অত্র এলাকার প্রশাসনের নীরব ভূমিকায় প্রতিয়মান যার কারনে – এলাকায় মাদকের বিস্তার দ্রুত ঘটছে । তিনি আরো বলেন অচিরেই আমরা –ব্রাহ্মণবাড়িয়া মাদক দ্রব্য নিয়ন্ত্রণ অধিদপ্তর – ও সদর থানার ওসি মহোদয়ের সাথে সাক্ষাত করে এই বিষয়ে কার্যকরী পদক্ষেপ নেওয়ার দাবী জানাবো ,  সেই সাথে মানুষের মাঝে জনসচেতনতা সৃষ্টির লক্ষে লিফলেট ব্যানার ফেষ্টুন – ও অটো বাইক ও রিক্সা চালকের মাঝে মাদকের কুফল ও ক্ষতিকর দিক গুলোর সাথে  স্বচিত্র চিত্র তুলে ধরে টিশার্ট বিতরনের কাজ শুরু করা হবে – পরে সংগঠনের  সদস্য ও আগত অতিথিদের মাঝে সংগঠনের লগো ও মাদক বিরুধী শ্লোগান যুক্ত টিশার্ট বিতরণ করা হয় ।

কলাপাড়া মহিলা আওয়ামী লীগের আহবায়ক এখন সুস্থ

 কলাপাড়া মহিলা আওয়ামী লীগের আহবায়ক এখন সুস্থ



তুহিন আহমেদ রাঙ্গাবালী প্রতিনিধিঃ

পটুয়াখালী ৪ আসনের মাননীয় সংসদ সদস্য আলহাজ্ব অধ্যক্ষ মোঃ মহিব্বুর রহমান (মহিব) এম,পি মহোদয় এর সহধর্মিনী আলহাজ্ব জাল্লাল উদ্দিন ডিগ্রী কলেজের অধ্যক্ষ জনাবা ফাতেমা আক্তার রেখা ম্যাডাম এখন সম্পূর্ণ সুস্থ আছেন | সবাই তার জন্য দোয়া করবেন আল্লাহ পাক যেনো তাকে  সুস্হ রাখে | আপনার সুস্বাস্থ্য কামনাই হোক আমাদের প্রত্যাশা,

ঝিকরগাছায় মাছের খাদ্য ও মাছ চাষিদের নিয়ে মতবিনিময় সভা অনুষ্ঠিত

 ঝিকরগাছায় মাছের খাদ্য  ও মাছ চাষিদের নিয়ে মতবিনিময় সভা অনুষ্ঠিত



প্রেস বিজ্ঞপ্তিঃ ঝিকরগাছায় মাছের খাদ্য  ও মাছ চাষিদের নিয়ে মতবিনিময় সভা অনুষ্ঠিত। আজ  শুক্রবার (২২ শে আগস্ট ) যশোর জেলার ঝিকরগাছা উপজেলার পোস্ট অফিসের পাশে নিহালি রিসোর্স লিমিটেড মাছের খাদ্য ও মাছের ঔষধ আমাদানি কারক প্রতিষ্ঠানের আঞ্চলিক  ডিলার দের নিয়ে বেলা ১১ টার সময় এক মতবিনিময় সভা অনুষ্ঠিত হয়। 

অনুষ্ঠানে সভাপতিত্ব করেন মতিয়ার রহমান আঞ্চলিক ব্যবস্থাপক। প্রধানঅতিথি  ছিলেন আবুল কাশেম  সিইও ঢাকা, বিশেষ অতিথি হিসেবে উপস্থিতি ছিলেন  ইলিয়াস আহমেদ, কিরোন হোসন, অফিস সহকারি রমজান আলী ,ডিলারদের মধ্যে উপস্থিত ছিলেন  নজরুল ইসলাম ,  আক্তারুজ্জামান, জিয়াউর রহমান, জাহিদুর রহমান সজল,মতিয়ার রহমান,আলহাজ্ব আব্দুর রব,গোলাম মোস্তফা, আব্দুস সামাদ,প্রমুখ।অনুষ্ঠান শেষে প্রধান অতিথি  সেরা ডিলার হিসেবে নজরুল ইসলাম কে উপহার সামগ্রী তুলেদেন। 


নন্দীগ্রামে ইউনাইটেড প্রেসক্লাব ঘোষনা সভাপতি জুয়েল, সাধারন সম্পাদক আবু সাঈদ

 নন্দীগ্রামে ইউনাইটেড প্রেসক্লাব ঘোষনা সভাপতি জুয়েল, সাধারন সম্পাদক আবু সাঈদ




আব্দুল আহাদ, নন্দীগ্রাম বগুড়া প্রতিনিধি: বগুড়ার নন্দীগ্রাম উপজেলায় তরুন প্রজন্মের সাংবাদিকদের নিয়ে নন্দীগ্রাম ইউনাইটেড প্রেসক্লাব ঘোষনা করা হয়েছে। ২২শে আগষ্ট ২০২০ইং তারিখ শনিবার নন্দীগ্রাম বাসস্ট্যান্ড এলাকায় অস্থায়ী কার্যালয়ে (দৈনিক আলো প্রতিদিন ও জাতীয় দৈনিক ঘোষনা পত্রিকা এবং চ্যানেল টি-ওয়ান) এর সাংবাদিক মো: আমিনুল ইসলাম জুয়েলকে সভাপতি ও (জাতীয় দৈনিক বাংলাদেশ সমাচার ও জাতীয় দৈনিক সন্ধাবানী পত্রিকার সাংবাদিক মোঃ আবু সাঈদকে সাধারন সম্পাদক করে ১৪ সদস্য বিশিস্ট কমিটি ঘোষনা করা হয়। প্রেসক্লাবের অন্যান্য সদস্যরা হলেন, সহ-সভাপতি মোঃ আব্দুল মান্নান ( দৈনিক বার্তা প্রবাহ), যুগ্ম-সাধারন সম্পাদক মোঃ মিজানুর রহমান ( জাতীয় দৈনিক গণমুক্তি), সাংগঠনিক সম্পাদক মোঃ খাইরুল ইসলাম (বিশেষ প্রতিনিধি দৈনিক মুক্ত বার্তা), সহ-সাংগঠনিক সম্পাদক মোঃ আবুল কালাম আজাদ (জাতীয় দৈনিক বিশ্ব মানচিত্র), প্রচার সম্পাদক মোঃ আব্দুল আহাদ প্রাং (দৈনিক উত্তরের দর্পণ ও জাতীয় দৈনিক সংবাদ সারাদেশ), দপ্তর সম্পাদক মোঃ হাবিবুর রহমান (সাপ্তাহিক নয়া পদক্ষেপ), অর্থ সম্পাদক মোঃ আব্দুল জব্বার (জাতীয় দৈনিক বাংলাদেশের আলো), আইন বিষয়ক সম্পাদক মোঃ গওছল বারী (জাতীয় দৈনিক সকালের সময়), প্রশিক্ষন বিষয়ক সম্পাদক মোঃ আব্দুস সাত্তার  (দৈনিক মহাস্থান), ক্রীড়া সম্পাদক মোঃ শফিউল আলম (পল্লী টেলিভিশন), তথ্য ও গবেষনা বিষয়ক সম্পাদক মোঃ এমদাদুল হক (জাতীয় দৈনিক দেশ বাংলা পত্রিকা ও এন এ টিভি), সদস্য মোঃ মজনুর রহমান মজনু (টিভি বাংলা)।

সর্বকালের সর্বশ্রেষ্ঠ যুবদলের কমিটি পেলো, শৈলকুপা উপজেলা যুবদল

সর্বকালের সর্বশ্রেষ্ঠ যুবদলের কমিটি  পেলো, শৈলকুপা উপজেলা  যুবদল





সম্রাট হোসেন, শৈলকুপা (ঝিনাইদহ) প্রতিনিধিঃঝিনাইদহ জেলার শৈলকুপা উপজেলা যুবদলের আহ্বায়ক কমিটি গঠন নিয়ে আসাদ সাহেবর গ্রুপের বিভিন্ন লোক জন অভিযোগ করেছেন যে, ঝিনাইদহ জেলার যুবদলের সভাপতি ও সাধারণ সম্পাদক টাকার বিনিময় এই কমিটি ঘোষণা করেছেন। কিন্তু সরেজমিনে তদন্ত করে দেখা যায় শৈলকুপা উপজেলা ছাত্রদলের সাবেক সাধারণ সম্পাদক, শৈলকুপা ডিগ্রি কলেজের সাবেক এ.জি.এস শৈলকুপা উপজেলার সব থেকে নির্যাতিত যুব নেতা ১৮ মামলার এজাহার ভুক্ত আসামী ৬ বারে ৯ মাসের ও বেশি সময় কারাবরণ। বহুবার হামলা শিকার। ২০০৯ সাল থেকে ২০১৫ সাল পর্যন্ত বাড়ি ছাড়া আবু জাহিদ চৌধুরী কে শৈলকুপার উপজেলা যুবদলের আহ্বায়ক  এবং ৬ মামলার আসামি ৩ বার কারাবরণ ও ৫ বার থানা হেফাজতে নিয়ে পুলিশের নির্যাতন। শৈলকুপা থানার সামনে ঝিনাইদহ জেলার সব থেকে বড় পোল্ট্রির বাচ্চা ও খাবারে ডিলার শীপের দোকান বন্ধ করে দিয়েছে। বছরের পর পর বছর বাড়ি ছাড়া যুব নেতা, সাবেক সাধারণ সম্পাদক ১৫ নং ফুলহরি ইউনিয়ন পরিষদ ও  শৈলকুপা উপজেলা যুবদলের আহ্বায়ক কমিটির ২ নং  সদস্য  মোঃ জমির উদ্দিন কে  বর্তমান কমিটির সদস্য সচিব করা হয়েছে। শৈলকুপা উপজেলার সকল স্তরের নেতা কর্মীরা এই কমিটি কে, শৈলকুপা উপজেলা যুবদলের প্রাণ ফিরিয়ে আনতে বড় ভুমিকা পালন করবে বলে মত প্রকাশ করেন। । তারা প্রতিবেদক কে জানান যে, ২০০৮ সালে যারা আনারস মার্কায় ভোট করেছিলো, ২০০৯ সাল থেকে ২০১৮ সাল পর্যন্ত হাতে গোনা ৪/৫ টা মিছিল মিটিং এর বেশি করেনি। তারা সব সময় শৈলকুপা উপজেলা বি এন পি ধংস করার কাজে লিপ্ত আছে তারাই এই কমিটির নামে মিথ্যা চার করছে। এই কমিটি কে শুভেচ্ছা ও অভিনন্দন জানিয়েছেন, কেন্দ্রীয় বি এন পির সহসাংগঠনিক সম্পাদক জয়ন্ত কুমার কুণ্ড, ঝিনাইদহ ১ শৈলকুপা উপজেলার ৩ বারের সাবেক সংসদ সদস্য আলহাজ্ব এম এ আব্দুল ওহাব ও ঝিনাইদহ জেলা বিএনপি নেতা ওসমান সাহেব এবং শৈলকুপা উপজেলা বিএনপির সাবেক সাংগঠনিক সম্পাদক সাজ্জাদুর রহমান সাজ্জাদ এবং জেলা সাবেক সহসভাপতি, সাবেক চেয়ারম্যান আলহাজ্ব আসাদুজ্জামান আসাদ, সাবেক চেয়ারম্যান, ও উপজেলা বি এন পির যুগ্ন আহাব্বায়ক রফিকুল ইসলাম ও ফিরোজ ভাই সহ সকল নির্যাতিত ও মাঠের বিএনপির নেতা কর্মীরা । জাহিদ চৌধুরি ও জমির উদ্দিনের কমিটি শৈলকুপা উপজেলা যুবদল  প্রতিষ্ঠার পর সব চেয়ে  শক্তি শালি কমিটি হয়েছে। তারা যুবদলের আহ্বায়ক কমিটি নিয়ে মিথ্যা চারের তিব্র নিন্দা ও প্রতিবাদ জানিয়েছেন।

১৬ শর্তে খোলা হচ্ছে চট্টগ্রামের বিনোদন কেন্দ্রগুলো

১৬ শর্তে খোলা হচ্ছে চট্টগ্রামের বিনোদন কেন্দ্রগুলো



কাজী মোঃ সাজ্জাদ হাসান:পাঁচ মাসের বেশি সময় বন্ধ থাকার পর ১৬ শর্তে চট্টগ্রামের সব বিনোদন কেন্দ্র খুলছে আজ শনিবার (২২ আগস্ট)। জেলা প্রশাসক (ডিসি) ইলিয়াস হোসেন  বলেন,  দর্শনার্থীদের মাস্ক ব্যবহার বাধ্যতামূলকসহ ১৬টি শর্ত বাস্তবায়ন সাপেক্ষে আমরা নগরীর বিনোদন কেন্দ্রগুলো চালুর সিদ্ধান্ত নিয়েছি। সিদ্ধান্ত অনুযায়ী শনিবার থেকে সব বিনোদন কেন্দ্র দর্শনার্থীদের জন্য উন্মুক্ত থাকবে। তবে কোন বিনোদন কেন্দ্র যদি এসব শর্ত না মানে তাহলে সেটি পুনরায় বন্ধ করে দেওয়া হবে।





ডিসি বলেন, বিনোদন কেন্দ্রগুলো এসব নির্দেশনা মানছে কিনা তা তদারকি করতে একটি ‘মনিটরিং টিম’ থাকবে। তারা বিনোদন কেন্দ্রগুলোতে সরেজমিনে গিয়ে এসব বিষয় তদারকি করবেন। লল

নির্দেশনাগুলোর মধ্যে রয়েছে- পার্কের প্রবেশ পথে জীবানুমুক্ত ট্যানেল স্থাপন, থার্মাল স্ক্যানারের মাধ্যমে দর্শনার্থীদের শরীরের তাপমাত্রা পরিমাপের ব্যবস্থা, পার্কে প্রবেশের ক্ষেত্রে দর্শনার্থীদের শারীরিক দূরত্ব বজায় রাখা, প্রবেশ পথে নিরাপদ শারীরিক দূরত্বের জন্য এক মিটার পরপর মার্কিং লাইন করা, পার্কে ময়লা ফেলার পাত্র ও স্যানিটাইজার অথবা হাত ধোয়ার ব্যবস্থা রাখা, পার্ক খোলার আগে-পরে এবং মধ্যবর্ত্তী সময়ে বিভিন্ন রাইড, শৌচারগার জীবাণুমুক্ত করা, দর্শনার্থীরা শৌচাগার ব্যবহারের পর দরজার হাতল, বেসিন জীবাণুমুক্ত করা, রাইডে দর্শনার্থীদের এক আসন পরপর বসানো এবং যেসব রাইডে শারীরিক দূরত্ব বজায় রাখা যাবে না সেগুলো বন্ধ রাখা। পার্কের প্রবেশপথ ও রাইডের কাছে তিন জনের বেশি জনসমাগম করতে না দেওয়া, স্বাস্থ্যবিধির বিষয়ে কর্মচারীদের প্রশিক্ষণ ও স্বাস্থ্য সুরক্ষা কাপড় পরা নিশ্চিত করা, পার্কের ভেতরে স্বাস্থ্যবিধি সংক্রান্ত বোর্ড, লিফলেট বিতরণ করা এবং ফুড কর্নারে বসে খাওয়া দাওয়া না কর।।





করোনোর প্রাদুর্ভাব শুরুর পর ১৮ মার্চ চট্টগ্রামের সব বিনোদন কেন্দ্রগুলো বন্ধ করা হয়। ওইদিন দুপুর থেকে পুলিশ পতেঙ্গা সৈকত, সিআরবি শিরীষতলাসহ বিভিন্ন উন্মুক্ত বিনোদন কেন্দ্রগুলোতে দর্শনার্থীদের প্রবেশ ঠেকাতে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা নেন। বিনোদন কেন্দ্রগুলোতে দর্শনার্থীদের উপস্থিতি ঠেকাতে কড়াকড়ি আরোপ করে চট্টগ্রাম জেলা প্রশাসন ও চট্টগ্রাম মেট্রোপলিটন পুলিশ।।





বিনোদন কেন্দ্রগুলো আজ থেকে খুললেও চট্টগ্রাম চিড়িয়াখানা খুলবে আগামীকাল রবিবার (২৩ আগস্ট)। চিড়িয়াখানার ডেপুটি কিউরেটর ডা. শাহাদাত হোসেন শুভ বলেন,  নগরীর অন্যান্য বিনোদন কেন্দ্রগুলো আজ থেকে খুললেও চট্টগ্রাম চিড়িয়াখানা আগামীকাল থেকে খুলবে। শুক্রবার (২১ আগস্ট) চট্টগ্রাম চিড়িয়াখানা ব্যবস্থাপনা কমিটির আহ্বায়ক জেলা প্রশাসক ইলিয়াস হোসেন স্যার এ সিদ্ধান্ত দিয়েছেন। চিড়িয়াখানায় যেহেতু সবসময় ব্যাপক জনসমাগম হয়, সেজন্য বাড়তি প্রস্তুতি নিতেই একদিন বেশি সময় নেওয়া হয়েছে।

কুয়াকাটায় ছাত্রলীগ সভাপতির মুক্তি দাবিতে পৌর ছাত্রলীগের বিক্ষোভ ও মানববন্ধন

 কুয়াকাটায় ছাত্রলীগ সভাপতির মুক্তি দাবিতে পৌর ছাত্রলীগের বিক্ষোভ ও মানববন্ধন




নাঈমুর রহমান কুয়াকাটা প্রতিনিতি:কুয়াকাটা পৌর ছাত্রলীগ সভাপতি মজিবর রহমানকে মহিপুর থানা পুলিশ উদ্দেশ্যমূলক আটক করে মামলায় ফাঁসিছে দাবি করে পৌর ছাত্রলীগ বিক্ষোভ মিছিল ও মানববন্ধন শেষে সংবাদ সম্মেলন করেছে। শনিবার সকাল ১০টায় কুয়াকাটা প্রেসক্লাবের সামনে বিক্ষোভ ও মানববন্ধন অনুষ্ঠিত হয়। পরে ছাত্রলীগের উদ্যোগে প্রেসক্লাবে সংবাদ সম্মেলনে লিখিত বক্তব্যে পৌর ছাত্রলীগের সাধারণ সম্পাদক মোঃ তাইফুর রহমান হাসান বলেন, গত ১৭ আগস্ট রাত ১০টার দিকে কুয়াকাটার আবাসিক হোটেল কিংস এর সামনে কতিপয় ছাত্রলীগ কর্মীদের সাথে তুচ্ছ একটি ঘটনায় পুলিশের কথা কাটাকাটি হয়। খবর পেয়ে সেখানে পৌর ছাত্রলীগ সভাপতি মোঃ মজিবর রহমান যান। পুলিশের কাছে তার পরিচয় দিয়ে কথা বলতে গেলে কোন কিছু বুঝে ওঠার আগেই তাকে লাঞ্ছিতের পাশাপাশি আটক করে। তার বিরুদ্ধে পুলিশের দায়ের করা মামলায় পুলিশের কাজে বাধাদান ও আক্রমণ এবং জুয়ার আসর থেকে আটকের দাবি করা হলেও পুলিশের এসব দাবি ছিল সম্পূর্ণ মিথ্যা ও ভিত্তিহীন। সংবাদ সম্মেলনে ছাত্রলীগ নেতা মজিবর রহমানের বিরুদ্ধে দায়ের করা মামলা থেকে অবিলম্বে অব্যাহতি এবং নিঃশর্ত মুক্তি দাবি করা হয়। কুয়াকাটা প্রেসক্লাব সভাপতি নাসির উদ্দিন বিপ্লবের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠিত সংবাদ সম্মেলনে উপস্থিত ছিলেন, পটুয়াখালী জেলা ছাত্রলীগের সহ সম্পাদক মিরাজুল ইসলাম বাবু, জেলা ছাত্রলীগের সদস্য মোঃ জসিম উদ্দিন, কুয়াকাটা খানাবাদ কলেজ শাখা ছাত্রলীগের সাধারণ সম্পাদক আবুবক্কর আবীর, পৌর ছাত্রলীগের সাবেক সহ সভাপতি ইলিয়াস শেখ ও সাবেক যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক মোঃ সাদ্দাম মাল প্রমুখ। কুয়াকাটা প্রেসক্লাব সাধারণ সম্পাদক কাজী সাঈদের সঞ্চালনায় লিখিত বক্তব্যের বিষয়ে গণমাধ্যম কর্মীদের বিভিন্ন প্রশ্নের জবাব দেন উপস্থিত ছাত্রলীগ কর্মীরা। এসময় প্রেসক্লাবের ভেতরে ও বাহিরে ছাত্রলীগের শতাধিক নেতা কর্মী মজিবর রহমানের মুক্তি দাবিতে বিভিন্ন প্লাকার্ড ফেস্টুন নিয়ে বিক্ষোভ করতে থাকেন। এদিকে পুলিশ উদ্দেশ্যমূলক কাউকে গ্রেফতার করেনি দাবি করে মামলার তদন্ত কর্মকর্তা মহিপুর থানার পরিদর্শক মোঃ মিজানুর রহমান বলেন, গত ১৭ আগস্ট রাতে মজিবর রহমানসহ ১০/১২ জন কিংস হোটেলে জুয়া খেলছিল। সেখান থেকে পাঁচজনকে পুলিশ গ্রেফতারে সক্ষম হয়।

নওগাঁ সাপাহারে ৩ টি মোটরসাইকেল সহ চোর দলের দুই সদস্য গ্রেপ্তার

 নওগাঁ সাপাহারে ৩ টি মোটরসাইকেল সহ চোর দলের দুই সদস্য গ্রেপ্তার




রাজশাহী ব্যুরো

নওগাঁর সাপাহারে ৩ টি মোটরসাইকেল সহ বাবু (২৭) ও রুমন (২৫) নামে অাত্নঃজেলা চোর দলের দুই সদস্যকে গ্রেপ্তার করেছে পুলিশ। শনিবার ভোর ৫ টার দিকে চাঁপাইনবাবগঞ্জ জেলার শিবগঞ্জ উপজেলার শিবনাথ একালা থেকে তাদের গ্রেপ্তার করা হয়।


শনিবার সন্ধ্যায় সাপাহার থানা চত্ত্বরে এক প্রেস বিফিংএ সহকারী পুলিশ সুপার বিনয় কুমার সাংবাদিকদের জানান, ৩০ জুলাই সাপাহার বাজার এলাকা হতে সাদেকুল ইসলাম নামে এক ব্যাক্তির বাজাজ সিটি ১০০ সিসি মোটরসাইকেল চুরি হয়ে যায়। এ ঘটনায় সাদেকুল ইসলাম বাদী হয়ে সাপাহার থানায় ২২ আগস্ট একটি মামলা দায়ের করেন। যার মামলা নং-৩১। ওই মামলার প্রেক্ষিতে পুলিশ সুপার আবদুল মান্নান মিয়ার নির্দেশনায় সংশ্লিষ্ট স্থানের সিসি ক্যামেরার ফুটেজ সংগ্রহ পূর্বক সিনিয়র সহকারী পুলিশ সুপার বিনয় কুমারের নের্তৃত্বে সাপাহার থানা পুলিশ অভিযান চালিয়ে তাদের গ্রেপ্তার করেন। এসময় তাদের দখল হতে ৩ টি ১০০ সিসি চোরাই মোটরসাইকেল উদ্ধার করা হয়।

এসময় সাপাহার থানার অফিসার ইনচার্জ (ওসি) আব্দুল হাই, ওসি তদন্ত আল মাহমুদ, থানার অন্যান্য পুলিশ কর্মকর্তা সহ গণমাধ্যমকর্মীরা উপস্থিত ছিলেন।

হরিণাকুন্ডুতে ভ্রাম্যমাণ আদালতে উপজেলা নির্বাহী অফিসার সৈয়দা নাফিস সুলতানা

 হরিণাকুন্ডুতে ভ্রাম্যমাণ আদালতে উপজেলা নির্বাহী অফিসার সৈয়দা নাফিস সুলতানা



খোন্দকার আব্দুল্লাহ বাশার,খুলনা ব্যুরো প্রধানঃ

ঝিনাইদহের হরিণাকুন্ডুতে বিভিন্ন প্রতিষ্ঠানে ভ্রাম্যমাণ আদালতে জরিমানা আদায় করা হয়েছে। 

শনিবার দুপুরে উপজেলা সদরের বিভিন্ন ব্যবসায়ী প্রতিষ্ঠানে ভ্রাম্যমাণ আদালত পরিচালনা করে জরিমানা আদায় করা হয়। ভ্রাম্যমান আদালতের নির্বাহী ম্যাজিষ্ট্রেট ও উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা সৈয়দা নাফিস সুলতানা জানান,

প্লাস্টিক মোরক ব্যবহার,মাস্ক পরিধান না করা, রাস্তা দখল করে পেট্রোল বিক্রয় করা সহ 

করোনা ভাইরাস সংক্রমণের হাত থেকে বাচতে পৌরসভার উপজেলা ৬টি মামলায় ৬  জনকে ১৪ হাজার ৪ শত টাকা জরিমানা আদায় করেন।

পেট্রোল বিক্রেতার নিকট থেকে ১ হাজার,চাতাল পট্টিতে আব্দুল সাত্তারকে ১০ হাজার,

কুলবাড়িয়া বাজার মুদী বিক্রেতা মসলেম উদ্দীনকে ২ হাজার, দুইটি চা স্টলে দোকানীকে ৪ শত, আলমগীর হোসেনকে ১ হাজার টাকা জরিমানা আদায় করা হয়।

দিনাজপুরে ওয়ার্ল্ড ভিশনের উদ্যোগে পিপিই বিতরণ অনুষ্ঠানে অতিরিক্ত পুলিশ সুপার

দিনাজপুরে  ওয়ার্ল্ড ভিশনের উদ্যোগে পিপিই বিতরণ অনুষ্ঠানে অতিরিক্ত পুলিশ সুপার




মামুনুর রশিদ,দিনাজপুর প্রতিনিধি ॥ ২২ আগষ্ট শনিবার পুলিশ সুপার কার্যালয়ে ওয়ার্ল্ড ভিশন দিনাজপুর এরিয়া প্রোগ্রাম এর উদ্যোগে সম্মুখ সারির কোভিড-১৯ যোদ্ধাদের (পুলিশ সদস্য) ব্যক্তিগত সুরক্ষা সরঞ্জাম (পিপিই) বিতরণ করা হয়। 

বিতরণ অনুষ্ঠানে উপস্থিত ছিলেন ওয়ার্ল্ড ভিশনের এপিসি ম্যানেজার অনুকুল চন্দ্র বর্মন, প্রোগ্রাম অফিসার দীনো দাস, এন্টিনা দাস, বার্নাড কুজুর, যোহন মুর্মু, জুনিয়র প্রোগ্রাম অফিসার সারা মিতা হালদার। পিপিই গ্রহণকালে দিনাজপুরের পুলিশ সুপার মোঃ আনোয়ার হোসেন, বিপিএম, পিপিএম (বার) এর পক্ষে অতিরিক্ত পুলিশ সুপার (প্রশাসন) শচিন চাকমা বলেন, করোনা ভাইরাসে দিনাজপুর জেলার ২৭১৭ জন পুলিশ সদস্য আক্রান্ত হয়েছেন এবং ১ জন মারা গেছেন। আইন শৃঙ্খলা রক্ষার পাশাপাশি পুলিশ সদস্যরা এই করোনা ভাইরাস মোকাবেলায় নিজের জীবন উপেক্ষা করে প্রথম সারির যোদ্ধা হিসেবে কাজ করে যাচ্ছেন। তাই তাদের সুরক্ষার জন্য সরকারের পাশাপাশি ওয়ার্ল্ড ভিশন বাংলাদেশ সুরক্ষা সরঞ্জাম বিতরণ করছে। এসময় আরো উপস্থিত ছিলেন অতিরিক্ত পুলিশ সুপার (সদর সার্কেল) সুজন সরকার, কোতয়ালী থানার অফিসার ইনচার্জ মোঃ মোজাফ্ফর হোসেন। ওয়ার্ল্ড ভিশন বাংলাদেশের পক্ষ থেকে এপিসি ম্যানেজার অনুকুল চন্দ্র বর্মন ৫৪টি সুরক্ষা সরঞ্জাম (পিপিই) প্রদান করেন।

নারায়ণগঞ্জে নতুন সনাক্ত ১২ জন, নেই কোনো নতুন মৃত্যু

 নারায়ণগঞ্জে নতুন সনাক্ত ১২ জন, নেই কোনো নতুন মৃত্যু




শিপন,নারায়ণগঞ্জ রিপোর্টারঃনারায়ণগঞ্জে গত ২৪ ঘন্টায় নতুন করে  ১২ জনের  করোনা ভাইরাস শনাক্ত করা হয়েছে। নতুন করে পাওয়া যায়নি মৃত্যু। 


জেলায় ভাইরাসে মৃত্যুর সংখ্যা বিদ্যমান মোট ১৩০ জন। মোট আক্রান্তের সংখ্যা ৬ হাজার ২৫২ জন। এ সময়ে সুস্থ ২৫ জন। সর্বমোট সুস্থ হয়ে বাড়ি ফিরেছেন ৫ হাজার ৮৮১ জন। ২২ আগস্ট শনিবার জেলা সিভিল সার্জন সূত্রে এই তথ্য নিস্চিত করেন।


সূত্র মতে যানা যায়, ২১ আগস্ট সকাল ৮টা থেকে ২১ আগস্ট সকাল ৮টা পর্যন্ত ২৪ ঘন্টা হিসাবে ১১২ জনের নমুনা সংগ্রহ করা হয়েছে। যার মধ্যে এলাকা ভিত্তিক নমুনা সংগ্রহ করা হয়েছে রূপগঞ্জ উপজেলায় ইউএস বাংলা বেসরকারী ল্যাব সহ ৩৮ জন, নারায়ণগঞ্জ সিটি করপোরেশন ও ৩০০ শয্যা হাসপাতালের পিসিবার ল্যাব সহ ৫৪ জন এবং সদর এলাকায় ২০ জন। আড়াইহাজার উপজেলায়, বন্দর উপজেলায় ও সোনারগাঁ উপজেলায় নতুন করে কোন নমুনা সংগ্রহ হয়নি। জেলায় এই পর্যন্ত মোট ৩৫ হাজার ৯৫৩ জনের নমুনা সংগ্রহ করা হয়েছে।

সিরাজগঞ্জ ৭ম শেনীর ছাএীকে বাল্যবিবাহের হাত থেকে রক্ষা করলেন সহকারী কমিশনার

সিরাজগঞ্জ ৭ম শেনীর ছাএীকে বাল্যবিবাহের হাত থেকে রক্ষা করলেন সহকারী কমিশনার




মাসুদ রানা সিরাজগঞ্জ জেলাপ্রতিনিধিঃ অদ্য ২২/০৮/২০২০ গোপন সূত্রের ভিত্তিতে বাল্যবিবাহ হচ্ছে সংবাদ পেয়ে সিরাজগঞ্জ সদর উপজেলার কালিয়া হরিপুর ইউনিয়নের মোড় গ্রামে মোবাইল কোর্ট পরিচালনা করে বাল্যবিবাহ বন্ধ করেন

সিরাজগঞ্জ সদর উপজেলার সহকারী  (ভূমি) ও এক্সিকিউটিভ ম্যাজিস্ট্রেট জনাব মোহাম্মদ রহমত উল্লাহ। 

বাল্যবিবাহের শিকার হতে যাওয়া অপ্রাপ্তবয়স্ক 'কনে' সপ্তম শ্রেণির শিক্ষার্থী। পিএসসি সনদ মর্মে তার বয়স ১৫ বছর নিশ্চিত করা হয়। তার মাতা জয়নব এর নিকট থেকে ১৮ বছর বয়স হওয়ার পূর্বে বিয়ে দিবেন না মর্মে মুচলেকা নেয়া হয় এবং এসময় বাল্যবিবাহ নিরোধ আইন ২০১৭ এর আওতায় ৪,৫০০/- (চার হাজার পাঁচশত টাকা) অর্থদন্ড দেয়া হয়।

মোবাইল কোর্ট পরিচালনা করেন সিরাজগঞ্জ সদর উপজেলার সহকারী  (ভূমি) ও এক্সিকিউটিভ ম্যাজিস্ট্রেট জনাব মোহাম্মদ রহমত উল্লাহ। 

অভিযান পরিচালনায় সহযোগিতা করেন উপজেলা ভূমি অফিসের স্টাফগণ এবং সদর থানা পুলিশ।

পাশাপোল ইউনিয়নে চেয়ারম্যান পদ প্রার্থী হিসেবে প্রচারণা চালাচ্ছে - প্রভাষক সবুজ

পাশাপোল ইউনিয়নে চেয়ারম্যান পদ প্রার্থী হিসেবে প্রচারণা চালাচ্ছে - প্রভাষক সবুজ



নিজস্ব প্রতিনিধিঃ  যশোর চৌগাছা উপজেলার পাশাপোল ইউনিয়ন পরিষদের আগামী ইউপি নির্বাচনে চেয়ারম্যান পদে প্রতিদ্বন্দ্বীতা করার জন্য প্রভাষক সবুজ প্রচারণা চালাচ্ছেন । আগামী ইউপি নির্বাচন অনুষ্ঠিত হতে এখনো প্রায় ১ বছরের অধিক সময় বাকী আছে। কিন্তু এরই মধ্যে প্রচারণা শুরু করেছেন এই নেতা।


ছাত্রলীগের হাত ধরে রাজনীতিতে প্রবেশ করেন। পাশাপোল ইউনিয়ন ছাত্রলীগের সাধারণ সম্পাদক  এর দায়িত্ব পালন করেন দক্ষতার সাথে।  বর্তমানে এই নেতা পাশাপোল  ইউনিয়ন যুবলীগের সাধারণ সম্পাদক (প্রস্তাবিত)  হিসেবে রাজনৈতিক কর্মকাণ্ড পরিচালনা করে চলেছেন । তার দায়িত্ব পালনে সততা ত্যাগ এবং হাইকমান্ডের নির্দেশ পালন করাসহ প্রতিটি দলীয় কর্মসূচী তে অংশ গ্রহন করে কর্মসূচি সফল করায় গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা পালন করায় উপজেলা ও ইউনিয়নের নেতা কর্মীদের সুনজরে আছেন।


এ বছর করোনা কালীন সময়ে তিনি অসহায় মানুষের পাশে দাড়িয়েছেন নিজের সাধ্যমত, এবং বিভিন্ন সামাজিক কর্মকাণ্ডে নিয়োজিত রেখেছেন নিজেকে। তার প্রত্যাশা সে বঙ্গবন্ধুর আদর্শের সৈনিক হিসেবে নিজেকে উৎসর্গ করতে চান। রাজনৈতিক জীবনে গরীব দুঃখি মানুষের পাশে থেকে অসহায় মানুষের সেবা করে চলেছেন সবসময়। মাদক বাল্য বিবাহ প্রতিরোধে গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা পালন সহ ধর্ষনের বিরুদ্ধে প্রতিবাদী কন্ঠস্বর নামে পরিচিত তিনি।  তিনি পাশাপোল  ইউনিয়নের প্রতিটি মানুষ এবং যুবসমাজের প্রিয় মানুষ, 

দানশীলতা এবং অন্যায়ের বিরুদ্ধে প্রতিবাদ ও সবসময় সাধারণ মানুষের পাশে থাকায় অত্র ইউনিয়নের সাধারণ মানুষ তাকে আগামী ইউপি নির্বাচনে চেয়ারম্যান হিসেবে দেখতে চায় পাশাপোল  ইউনিয়নের আপামর জনগণ।


তিনি আমাদের জানান, আমার ইউনিয়নের মানুষ যদি চায় আমি আমার সকল কিছু দিয়ে তাদের পাশে থেকে সেবা করবো ইনশাআল্লাহ ।তাদের এই চাওয়া পূরনের জন্য এবং তাদের সেবা করার জন্য আমি চেয়ারম্যান হিসেবে আগামী ইউপি নির্বাচনে প্রতিদ্বন্দ্বিতা করব। আমি অত্র ইউনিয়নের সাধারণ মানুষের উপর পূর্ণ আস্হা রেখে শুধু এটুকুই বলব এতগুলো মানুষের চাওয়া কখনো মিথ্যা হতে পারেনা। বিজয় আমাদের হবেই ইনশাআল্লাহ

হবিগঞ্জে সদর হাসপাতালে স্যালাইনের স্ট্যান্ডের পরিবর্তে বাঁশ!

হবিগঞ্জে সদর হাসপাতালে স্যালাইনের স্ট্যান্ডের পরিবর্তে বাঁশ!



লিটন পাঠান, হবিগঞ্জ জেলা প্রতিনিধিঃ হবিগঞ্জ জেলার সদর আধুনিক হাসপাতালে এখন নামেই আধুনিক ধীরে ধীরে কমতে শুরু করেছে এই হাসপাতালের প্রয়োজনীয় সুবিধা। অবস্থা এখন এমন যে এখানে বিভিন্ন ওয়ার্ডের বেডগুলোতে স্যালাইন দেওয়ার স্ট্যান্ডও খুঁজে পাওয়া যায় না। এর বদলে রোগীদের বেডের পাশে ব্যবহার হচ্ছে বাঁশ। এ নিয়ে হাসপাতালে আগত রোগীদের মধ্যে ক্ষোভ দেখা দিয়েছে। অনেক রোগীর স্বজন বিষয়টি নিয়ে সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম ফেসবুকেও দিচ্ছেন স্ট্যাটাস কিন্তু এরপরেও টনক নড়েনি হাসপাতাল কর্তৃপক্ষের।


খোঁজ নিয়ে জানা গেছে হবিগঞ্জ সদর আধুনিক হাসপাতালটিতে প্রতিটি ওয়ার্ডে এই করোনাকালীন সময়েও রোগীর ভিড় রয়েছে। তবে হাসপাতালের ভেতরের পরিবেশ খুবই অপরিচ্ছন্ন। ময়লা ও দুর্গন্ধের কারণে হাসপাতালের ভেতরে সবাইকে নাকেমুখে হাত দিয়ে চলাচল করতে হচ্ছে রোগীর স্বজনদের অভিযোগ, নিয়মিত পরিচ্ছন্নতার বিষয়টি এই হাসপাতালে তেমন একটা মানা হয় না সরেজমিনে গিয়ে দেখা যায়।


প্রায় প্রতিটি ওয়ার্ডের বেডে রোগী থাকলেও তাদের জন্য স্যালাইন লাগানোর জন্য কোনও স্ট্যান্ড নেই। নিয়ম অনুযায়ী, প্রতিটি বেডের পাশে স্যালাইন কিংবা এ ধরনের ওষুধ ব্যবহারের সুবিধার্থে একটি করে লোহার স্ট্যান্ড যুক্ত বা আলাদাভাবে থাকার কথা। কিন্তু, কোনও বেডের পাশে তেমন কিছু দেখা যায়নি। বরং দেখা গেছে, রোগীর স্বজনরা বাধ্য হয়ে নিজ নিজ প্রয়োজনে বাঁশ এনে বেডের সঙ্গে আটকিয়ে স্ট্যান্ড হিসেবে ব্যবহার করছেন।


এ বিষয়ে জানতে চাইলে সদর উপজেলার নিজামপুর থেকে আসা এক নারী রোগীর আত্মীয় রহিম মিয়া জানান, ভাই হাসপাতালের নার্স-আয়াদের কাছে চেয়েও স্ট্যান্ড পাইনি। তারা বলেছেন রোগীর স্যালাইন ঝোলানোর স্ট্যান্ড এ হাসপাতালে নাকি খুবই কম। সেগুলোও ভেঙে গেছে। পাওয়া যাবে না বাধ্য হয়ে আমাদের প্রয়োজনে বাঁশ দিয়ে স্ট্যান্ড বানিয়ে নিয়েছি ডাক্তার এসে স্যালাইন পুশ করার কথা বলে চলে যায়।


সেটা কিসের ওপর আটকিয়ে পুশ করা হবে সে বিষয়ে কিছু বলে না। স্ট্যান্ড না থাকলে স্যালাইন হাতে ধরে দাঁড়িয়ে বা বসে থাকতে হয়। তাতে স্যালাইনের ফোঁটার গতি কম-বেশি হয়ে যায়। তাই অন্যদের কাছে বাঁশ নিয়ে আসার পরামর্শ পেয়েছি। তাদের মতো আমরাও বাঁশ দিয়ে স্ট্যান্ড বানিয়েছি এ হাসপাতাল শুধু নামেই আধুনিক বাস্তবে কিছুই নেই।


হবিগঞ্জ সদর উপজেলার পইল গ্রাম থেকে রোগী নিয়ে হাসপাতালে আসা রোজী কমলা বানু জানান, অধিকাংশ বেডের মধ্যেই স্যালাইন দেওয়ার কোনও স্ট্যান্ড নাই, যার প্রয়োজন বাঁশ দিয়েই কাজ সারছে। হাসপাতালের কোনও কর্মচারীকে অনুরোধ করার পরও কোনও স্ট্যান্ড পাওয়া যায়নি।


এ বিষয়ে ক্ষুব্ধ হয়ে আব্দুল মুবিন মিজান নামে এক ব্যক্তি তার ফেসবুকে স্ট্যাটাসও দিয়েছেন ওই স্ট্যাটাসে তিনি লেখেন, আমি গতকাল (রবিবার রাতে) আমার এক আত্মীয় (রোগীকে) নিয়ে হবিগঞ্জ সদর আধুনিক হাসপাতালে চিকিৎসা জন্য গিয়েছিলাম। কর্তব্যরত ডাক্তার আমার রোগীকে দেখে হাসপাতালে ভর্তির করার জন্য পরামর্শ দিলেন।


কী আর করা রোগীকে নিয়ে গেলাম নিচতলায় নারী মেডিসিন ওয়ার্ডে ভর্তি করার জন্য আমার রোগীকে নিয়ে ওয়ার্ডে যাওয়ার সাথে সাথেই চোখে পড়লো বাঁশ, অধিকাংশ চিকিৎসাধীন রোগীর সিট বেডের সাথে ঝুলানো আছে একটি করে ২-৩ হাত লম্বা বাঁশ। স্বাভাবিকভাবে মনে প্রশ্ন জাগলো এসব বাঁশের মানে কী।


তবে এ প্রশ্নের উত্তর খুঁজে পেতে আমার বেশি সময় লাগলো না। ওয়ার্ডে কর্তব্যরত সেবিকা (নার্স) আমাকে বললেন, ভাই আপনার রোগীকে দ্রুত স্যালাইন দিতে হবে। তিনি স্যালাইন কেনার সঙ্গে সঙ্গে রোগীর স্যালাইন ঝোলানোর জন্য একটি স্ট্যান্ড সংগ্রহেরও পরামর্শ দিলেন।


স্যালাইন এনে খুঁজতে শুরু করলাম স্যালাইন দেওয়ার স্টেন (স্ট্যান্ড)। কোথাও খুঁজে পেলাম না এই মহা মূল্যবান জিনিসটি। স্ট্যাটাসে তিনি আরও লেখেন এই মহিলা মেডিসিন ওয়ার্ডে মোট রোগীর সংখ্যা প্রায় ২৯জন। দুঃখজনক হলেও সত্য এতো রোগীর স্যালাইন দেওয়ার জন্য একটি স্যালাইন স্ট্যান্ডও নেই এই ওয়ার্ডে।


ফলে বাধ্য হয়ে রোগীকে স্যালাইন দেওয়ার প্রয়োজনে ব্যবহার করতে হচ্ছে বাঁশ অথবা জানালার লোহার গ্রিল।

তিনি আরও লিখেছেন শিশু ওয়ার্ডের চিত্রও প্রায় একই রকম। আমি হতাশা নিয়ে অনেক খোঁজাখুঁজি করেও হাসপাতালে একখানা স্ট্যান্ড পেলাম না। খুঁজে একটা বাঁশও পাইলাম না।


পরে জানতে পারিলাম স্যালাইনে ব্যবহারিত ( ব্যবহৃত ) বাঁশগুলো রোগীরা (রোগীর স্বজনরা) নিজেরাই সংগ্রহ করিয়া আনিয়াছে। আমি একটি বাঁশ একজন রোগীর কাছ থেকে ধার এনে আমার রোগীর স্যালাইন স্টেন ( স্ট্যান্ড ) হিসাবে ব্যবহার করিলাম এই হলো বর্তমানে হবিগঞ্জ সদর আধুনিক হাসপাতালের হাল চিত্র।


এরপর পাদটীকা হিসেবে ওই স্ট্যাটাসে তিনি অন্যদের পরামর্শ দিয়েছেন, যারা চিকিৎসার জন্য সদর হাসপাতালে যাবেন দয়া করে সাথে একখানা ২-৩ হাত লম্বা বাঁশ নিয়া যাবেন বলা তো যায় না বাঁশের প্রয়োজন হতে পারে।

হাসপাতালের এই দুরবস্থা সম্পর্কে জানতে চাইলে হবিগঞ্জ সদর। 


হাসপাতালের আবাসিক মেডিক্যাল অফিসার ডাঃ শামীম আরা বলেন, এখানে ২৫০ শয্যার হাসপাতাল হলেও কর্মকর্তা ও কর্মচারী এবং প্রয়োজনীয় সরঞ্জাম রয়েছে ১০০ শয্যার। আমার অনেক বেডের স্ট্যান্ড নষ্ট হয়ে গেছে এর বিকল্প হিসেবে দু একটিতে বাঁশ থাকতে পারে বাইরে থেকে বাঁশ নিয়ে আসার কথা।


অস্বীকার করে তিনি বলেন তবে রোগীর স্বজনরা বাঁশ নিয়ে আসছে কথাটি মিথ্যা। আমরা চেষ্টা করছি একাধিক নষ্ট হওয়া স্ট্যান্ড মেরামত করার জন্য। তিনি বলেন বিষয়টি নিয়ে সংশ্লিষ্ট কর্তৃপক্ষের সাথে কথা হয়েছে আশা করি দ্রুতই ঠিক হয়ে যাবে। হবিগঞ্জ জেলার সিভিল সার্জন ডাঃ মোস্তাফিজুর রহমান জানান, বিষয়টি আমার নজরে নেই আমি আপনার মাধ্যমে শুনলাম। এটা সাময়িক কাজের জন্য হতে পারে তবে বাঁশ দিয়ে কোনও সমাধান হতে পারে না আমি বিষয়টি খোঁজ নিয়ে ব্যবস্থা নেবো।

কার কথা বলব আমি? সুমন হালদার

কার কথা বলব আমি?   সুমন হালদার




আমি কার কথা বলব?

দুঃখিনী মাতা,কঙ্কালসার ভাই

যাদের পেট ভরে জলের পানির স্রোতে;

আমি কি আমার লালপরী বোনের কথা বলব

যে বাঁচতে পারেনি,বাঁচতে দেয়নি...

নাকি আমার বৃদ্ধ বাবার কথা বলব

যার বুকে ও পিঠে রক্তজবার ক্ষত।

আমি কি আমার বন্ধু, যে নাটাই উড়াত তার কথা বলব?

যার বুকে মরন বেঁধেছে বাসা।

আমি কি বলব ন্যাড়ার মা,

ক্যাঙলার কাকি নাকি হুজুর চাচার কথা

আমি লিখব নাকি পদ্মার স্রোত

নাকি বয়ে যাওয়া রুপসার ইলিশের গান।

আমি ক্ষত কত দেখেছি

কত ফুল দেখেছি

আর কত বাসক সিরাপ খেয়েছি

দুচোখে বলেছি,

মরন যেখানে বাসা বেঁধেছে তার নাম

কারাগার নয়!

কবিতার মাঠ মিজানুর রহমান তোতা

কবিতার মাঠ  মিজানুর রহমান তোতা




কবিতার মাঠে হাঁটছি তো হাঁটছিই,

বিস্তৃত এই পথ, আকাশের মতো বিশাল। 

সহজে দেয়া যাবে না কবিতার মাঠ পাড়ি। 


পথ চলতে শত শত অভিবাদন পাচ্ছি,

খুশীতে গদগদ হচ্ছি, 

ব্যক্তি ও সমষ্টিগত বাদ প্রতিবাদ হারা।

কবিতার মাঝে খুঁজে ফিরি আত্মতৃপ্তি।

সমাজ রাষ্টের কী লাভ হয় জানি না। 


তবুও কবিতার মাঠে হাঁটছি তো হাঁটছিই।

কবিতা আমার হাতিয়ার কিন্তু নেই ব্যবহার।

মনপ্রাণ দিয়ে কলম খুলে আমরা কী লিখি?


অনিশ্চিত মূহূর্তের হাতছানি।

তবুও কবিতা লিখে চলেছি।


মস্তিস্কপ্রসূত তথ্যের সমাহার ঘটিয়ে লিখছি কবিতা।

আবেগের  স্রোতে অবগাহন হিমালয় পর্বত আকাশ। 

এটি তো নয় কবিতা।


কবিতা হবে অন্যায় অপকর্মের বিরুদ্ধে চাবুক।

প্রেম ভালোবাসাও থাকবে কিংবা ফুল পাখির গল্প।

মূলত কবিদের কাজ কবিতা লেখা সমাজ বিনির্মাণে।


কবিতা লিখি মনের ক্ষুধা মিটাতে।

এতে কারো হৃদয় স্পর্শ করে না। 

বিপ্লব হয় না, পানসে সব কবিতা।

নাড়া দেওয়ার মতো কবিতা নেই।


যে যার মতো আমরা পাতা পাতা লিখে চলেছি।

কবিতার মাঠে উদাস মনে হাঁটছি, ঘুরছি, ফিরছি। 

আত্মতৃপ্তির ঢেঁকুর তুলছি।

তাতে কী সমাজ রাষ্ট্রের কোন উপকারে আসছে?

যতসব অন্ধ উম্মাদনা।


রহস্য উম্মোচনের দরজা বন্ধ করে লিখছি কবিতা।

জীবন ও জীবিকা সুরক্ষার তত্ত্ব হয় কী উপস্থাপিত?

কৃষক, শ্রমজীবিদের বঞ্চনার প্রতিবাদ কখনো হয়?


কবিতার বিশাল মাঠে কবিদের দৌড়াদৌড়ি। 

দেশ জাতির দিক নির্দেশনায় বের হয় কী মহাকাব্য?


ক্ষুরধার লেখনিতে দুর্নীতি অন্যায় ভেসে যাবে।

মানুষ মাথা তুলে দাঁড়াবে, প্রতিবাদী হবে।

তাহলেই হবে কবিতার মাঠে পথচলার স্বার্থকতা।


কবিতা হোক জীবনসত্ত্বার ক্যানভাস।

প্রস্ফুট হোক গতিময় বৈচিত্রপূর্ণ।

সমাজের ঘুণপোকা অপসারণে হিরন্ময় হাতিয়ার।

আশাশুনির কুল্যা কমিউনিটি ক্লিনিক পরিদর্শন করেন -ডাঃ সুদেষ্ণা সরকার

আশাশুনির কুল্যা কমিউনিটি ক্লিনিক পরিদর্শন করেন -ডাঃ সুদেষ্ণা সরকার


আহসান উল্লাহ বাবলু উপজেলা প্রতিনিধিঃ আশাশুনি উপজেলার কুল্যা কমিউনিটি ক্লিনিক পরিদর্শন করেন উপজেলা স্বাস্থ্য ও পঃ পঃ কর্মকর্তা ডাঃ সুদেষ্ণা সরকার। শনিবার দুপুরে তিনি এ কমিউনিটি ক্লিনিক পরিদর্শন করেন। পরিদর্শনকালে ডাক্তার সুদেষ্ণা সরকার বলেন বর্তমানে মহামারী করোনাভাইরাসের কারণে মানুষের জীবন ও স্বাস্থ্য ঝুঁকির মধ্যে রয়েছে। একমাত্র সচেতনতাই পারে আমাদেরকে এ মহামারীর হাত থেকে রক্ষা করতে। এজন্য সবাইকে স্বাস্থ্যবিধি মেনে নিরাপদ দূরত্ব বজায় রাখতে হবে এবং অবশ্যই মাক্স ব্যবহার করতে হবে। এ সময় উপস্থিত ছিলেন এস আই জি এম গোলাম মোস্তাফা, এইচ এ মোক্তারুজ্জামান স্বপন, সিএইচসিপি অমিত সরকার।

সিরাজগঞ্জ কাজিপুরে নদী তীর রক্ষাবাধে ধস

 সিরাজগঞ্জ কাজিপুরে নদী তীর রক্ষাবাধে ধস



মাসুদ রানা সিরাজগঞ্জ জেলাপ্রতিনিধিঃ।সিরাজগঞ্জের কাজিপুর উপজেলার ১ নং সাইড ঢেকুরিয়া পয়েন্টের শহিদ এম মনসুর আলী ইকোপার্ক  এর একশ গজ উত্তরে নদীতীর রক্ষাবাধে ধস নেমেছে। শনিবার ভোররাত সাড়ে তিনটা থেকে এই ধস শুরু হয়ে এ পর্যন্ত একশ মিটার বাধ নদীগর্ভে চলে গেছে।

 শনিবার সকালে সরেজমিন ভাঙন কবলিত স্থানে গিয়ে দেখে গেছে আতঙ্কিত লোকজন বাড়িঘর ও অন্যান্য জিনিসপত্র  ট্রাকযোগে সরিয়ে নিচ্ছেন। ভাঙন রোধে সিরাজগঞ্জ পানি উন্নয়ন বোর্ড ও স্থানীয় লোকজন বালিভর্তি জিওব্যাগ ফেলছে।

এসময়  স্থানীয় ইউপি সদস্য ও মাইজবাড়ি ইউনিয়ন আ.লীগের সাধারন সম্পাদক আব্দুস সালাম জানান, ‘ভোররাতে প্রচন্ড বৃষ্টি হচ্ছিল। সেইসময় প্রচন্ড ঘূর্ণাবর্তের সৃষ্টি হয়ে কয়েক মিনিটের মধ্যে আজগর আলীর একটি ঘর, টিউবওয়েল পানিতে দেবে যায়। ’

 পাউবোর উপসহকারি প্রকৌশলী (এসও) হায়দার আলী জানান, ‘ভোর থেকে আমরা পাঁচশ জিওব্যাগ ফেলার কাজ শুরু করেছি।’  এদিকে তীর রক্ষা বাধের পুরাতন ওয়াপদা বাধ সংলগ্ন স্থানে এই ধস দেখা দেওয়ায় ব্যাপক ঝুঁিকতে রয়েছে ঐতিহ্যবাহী ঢেকুরিয়া হাট, কয়েকটি শিক্ষা প্রতিষ্ঠান ও  আশপাশের সহ¯্রাধিক পরিবার।

দুপরে কাজিপুর উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা জাহিদ হাসান সিদ্দিকী ভাঙনস্থলে আসেন। এসময় তিনি ক্ষতিগ্রস্ত চারটি পরিবারকে শুকনো খাবার ও নগদ অর্থ সহায়তা প্রদান করেন। এসময় তিনি জানান, ‘ আপাতত তাদের তাকার জন্যে তাবুর ব্যবস্থা করা হবে। পরে ঢেউটিন প্রদান করা হবে।

বানভাসি ক্ষতিগ্রস্ত মানুষের পাশে উপজেলা চেয়ারম্যান এ বি এম মোস্তাকিম

বানভাসি ক্ষতিগ্রস্ত মানুষের পাশে উপজেলা চেয়ারম্যান এ বি এম মোস্তাকিম




আহসান উল্লাহ বাবলু উপজেলা প্রতিনিধিঃআশাশুনি উপজেলার সদর ও শ্রীউলা ইউনিয়ানের বানভাসি ক্ষতিগ্রস্ত মানুষের পাশে উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান ও উপজেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি এবিএম মোস্তাকিম।


শনিবার সকালে তিনি ক্ষতিগ্রস্ত এলাকা পরিদর্শন করে বলেন- উপজেলার প্রত্যেকটি দুর্যোগময় মুহূর্তে আমি আপনাদের পাশে ছিলাম আছি এবং ভবিষ্যতেও থাকবো। দুর্যোগকালীন সময়ে যতদিন থাকবে মানুষ যেন খাদ্য সহায়তা পায় তার ব্যবস্থা করা হবে কেউ অভুক্ত থাকবে না এবং খাদ্য সংকটে পড়বেন না তার জন্য আমি সর্বোচ্চ পর্যায় পর্যন্ত যোগাযোগ অব্যাহত রেখেছে। সাগরে নিন্মচাপের প্রভাবে টানা বর্ষণে নদীর পানি অস্বাভাবিক বৃদ্ধি পাওয়ায় আশাশুনি সদরের দয়ারঘাট গ্রামের রিং বাঁধটি ব্যাপক ক্ষতিগ্রস্ত হয়ে পড়েছে। এছাড়া শ্রীউলা ইউনিয়নের হাজরাখালি, প্রতাপ নগর ইউনিয়নের চাকলা, সুভদ্রাকাটি, রুইয়ারবিল, নাকনা ওয়াপদা বেড়িবাঁধ ভেঙ্গে জোয়ারের তীব্র স্রোতে এবং জোয়ারের পানি বৃদ্ধির কারণে এই দুই ইউনিয়নের সমস্ত গ্রাম প্লাবিত ও আশাশুনি সদর ইউনিয়নের আংশিক এলাকা নতুন করে প্লাবিত হয়েছে। মানুষ পানিবন্দী হয়ে এখন মানবেতর জীবনযাপন করছে। পানিবন্দি মানুষ খাবার পানির তীব্র সংকটে ভুগছে এবং স্যানিটেশন ব্যবস্থা সম্পূর্ণরূপে ভেঙে পড়েছে। বাঁধগুলোর বিভিন্ন স্থানে ভেঙ্গে ও ধ্বসে যাচ্ছে। দয়ারঘাট, হাজরাখালী ও প্রতাপনগরের বাঁধগুলি টেঁকসই করে নির্মান করার দায়িত্ব পেয়েছেন আমাদের সেনাবাহিনীর সদস্যরা। তবে শীত মৌসুমে ছাড়া বাঁধগুলি মেরামত সম্ভব নয় বিধায় সে পর্যন্ত আমাদের এসব রিং বাঁধগুলি টিকিয়ে রাখতে হবে। আমি জেলা প্রশাসক, বিভাগীয় কমিশনার, পানি উন্নয়ন বোর্ড, এাণ ও দুর্যোগ মন্ত্রনালয়সহ সংশ্লিষ্ট বিভিন্ন দপ্তরে কথা বলেছি। সেনাবাহিনীসহ কন্ট্রাক্টরের কাজ শুরু না করা পর্যন্ত বাঁধগুলি মেরামত করতে তিনি যথাযথ কর্তৃপক্ষকে দ্রুত ব্যবস্থা নেওয়ার আহ্বান জানান। ভাঙ্গন কবলিত বাঁধ নির্মাণ ও পানিবন্দি অসহায় মানুষের মানবেতর জীবন থেকে রক্ষা পেতে তিনি মাননীয় প্রধানমন্ত্রীর আশু হস্তক্ষেপ কামনা করেন।


ক্ষতিগ্রস্ত রিং বাঁধ বানভাসি এলাকা পরিদর্শনের সময় উপস্থিত ছিলেন ইউপি শ্রীউলা ইউপি চেয়ারম্যান ও উপজেলা আওয়ামী লীগের যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক আবু হেনা শাকিল, সদর ইউপি চেয়ারম্যান ও উপজেলা আওয়ামী লীগের সাংগঠনিক সম্পাদক স ম সেলিম রেজা মিলন, আওয়ামীলীগের সাংগঠনিক সম্পাদক আব্দুস সামাদ বাচ্চুসহ এলাকার গন্যমান্য ব্যক্তিবর্গ

চট্টগ্রামের বিনোদন কেন্দ্র খুলেছে আজ

 চট্টগ্রামের বিনোদন কেন্দ্র খুলেছে আজ




শিপন নাথ:- দীর্ঘ পাঁচ মাসের বেশি সময় ধরে বন্ধ থাকার পর ১৬ শর্তে চট্টগ্রামে সব বিনোদন কেন্দ্রগুলোর দুয়ার আজ থেকে আনুষ্ঠানিকভাবে খুলছে। এর আগে গত বুধবার চট্টগ্রাম জেলা প্রশাসন কার্যালয়ের সম্মেলনে কক্ষে এক বৈঠকের পর নির্ধারিত দিন থেকে নির্দেশনা মেনে বিনোদন কেন্দ্রগুলো খুলে দেয়ার ব্যাপারে সিদ্ধান্ত নেয়া হয়।


 নির্দেশনাগুলোর মধ্যে রয়েছে- পার্কের প্রবেশ পথে জীবানুমুক্তকরণ ট্যানেল স্থাপন, থার্মাল স্ক্যানারের মাধ্যমে দর্শনার্থীদের শরীরের তাপমাত্রা পরিমাপের ব্যবস্থা, পার্কে প্রবেশের ক্ষেত্রে দর্শনার্থীদের শারীরিক দূরত্ব বজায় রাখা, প্রবেশ পথে নিরাপদ শারীরিক দূরত্বের জন্য এক মিটার পরপর মার্কিং লাইন করা, পার্কে ময়লা ফেলার পাত্র ও স্যানিটাইজার অথবা হাত ধোয়ার ব্যবস্থা রাখা, পার্ক খোলার আগে ও পরে এবং মধ্যবর্ত্তী সময়ে বিভিন্ন রাইড, শৌচারগার জীবানুমুক্ত করা, দর্শনার্থীরা শৌচাগার ব্যবহারের পর দরজার হাতল, বেসিন জীবনুমুক্ত করা, রাইডে দর্শনার্থীদের এক আসন পরপর বসানো এবং যে সকল রাইডে শারীরিক দূরত্ব বজায় রাখা যাবে না সেগুলো বন্ধ রাখা, পার্কের প্রবেশপথ ও রাইডের কাছে তিন জনের বেশি জনসমাগম করতে না দেওয়া, স্বাস্থ্যবিধির বিষয়ে কর্মচারীদের প্রশিক্ষণ ও স্বাস্থ্য সুরক্ষা কাপড় পরা নিশ্চিত করা, পার্কের ভেতরে স্বাস্থ্যবিধি সংক্রান্ত বোর্ড, লিফলেট বিতরণ করা এবং ফুড কর্নারে বসে খাওয়া দাওয়া না করা।


দেশে করোনো ভাইরাস প্রাদুর্ভাব শুরুর পর গত ১৬ মার্চ সরকার দেশের সকল শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান বন্ধ ঘোষণা করা হয়। দু’দিন পর ১৮ মার্চ চট্টগ্রামের সকল বিনোদন কেন্দ্রগুলো পরবর্তী নির্দেশনা না দেয়া পর্যন্ত বন্ধ রাখার ঘোষণা দেয়। ওইদিন দুপুর থেকে পুলিশ পতেঙ্গা সৈকত, সিআরবি শিরীষতলাসহ বিভিন্ন উন্মুক্ত বিনোদন কেন্দ্রগুলোতে দর্শনার্থীদের প্রবেশ ঠেকাতে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা নেন। বিনোদন কেন্দ্রগুলোতে দর্শনার্থীদের উপস্থিতি ঠেকাতে কড়াকড়ি আরোপ করে চট্টগ্রাম জেলা প্রশাসন ও চট্টগ্রাম মেট্রোপলিটন পুলিশ।


তবে গেল পবিত্র ঈদুল আজহার আগেই চট্টগ্রামে উন্মুক্ত বিনোদন কেন্দ্রগুলোতে দর্শনার্থীরা ধীরে ধীরে ভিড় করতে শুরু করে। বিশেষ করে বিকালে পতেঙ্গা সৈকত, কাট্টলী সাগর পাড়, মেরিন ড্রাইভ সংলগ্ন কর্ণফুলী পাড়, অভয়মিত্র ঘাট, সিআরবি শিরীষ তলাসহ বিভিন্ন জায়গায় শিশুসহ সব শ্রেণির দর্শনার্থীদের প্রচুর সমাগম হতে দেখা যায়। যা এখনো অব্যাহত রয়েছে।