কেশবপুরে ডাক্তার দম্পতি মেয়েসহ একই পরিবারের ৩ জনের করোনা শনাক্ত

কেশবপুরে ডাক্তার দম্পতি মেয়েসহ একই পরিবারের ৩ জনের করোনা শনাক্ত




মোরশেদ আলম
যশোর ভ্রাম্যমাণ প্রতিনিধি। 

যশোর সদর হাসপাতালের তত্ত্বাবধায়ক ডা. দিলীপ কুমার রায় স্ত্রী ও মেয়েসহ করোনায় আক্রান্ত হয়েছেন । ডা. দিলীপ কুমার রায় বৃহস্পতিবার (১১ জুন) দুপুরে নিজেই বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন। তিনি বলেন, বাসাতেই আছি। শারীরিকভাবে কিছুটা দুর্বলতা ছাড়া এমনিতেই ভালো আছি।দিলীপ কুমার জানান, গতকাল আমার ফলাফল পেয়েছি। আমরা বর্তমানে আমাদের কেশবপুরের বাড়িতে অবস্থান করছি। কিছুটা দুর্বলতা অনুভব ছাড়া শারীরিকভাবে সবাই ভালো আছে।

তিনি আরও বলেন, আমাদের ব্যক্তিগত গাড়িরচালক রানাপ্রসাদ সানির (৪৮) শরীরের নমুনা আজ পাঠানো হয়েছে।

যশোর জেনারেল হাসপাতালের আরএমও ডা. আরিফ আহমেদ জানান, গত ৮ জুন তাদের শরীর থেকে নমুনা পাঠানো হয় পরীক্ষার জন্য। নমুনা পরীক্ষায় তাদের শরীরে করোনা শনাক্ত হয়েছে।স্বাস্থ্য বিভাগের একটি সূত্রে জানা গেছে, তত্ত্বাবধায়কের স্ত্রী ডা. অঞ্জলী যশোর মেডিকেল কলেজের সহযোগী অধ্যাপক ও বিশিষ্ট অ্যানেসথেসিস্ট। তিনি ক্যানসারে আক্রান্ত।

সিরাজগঞ্জের একটি ক্যানসার হাসপাতালে রেডিও থেরাপি দিয়ে গত ৭ জুন (রোববার) ডা. অঞ্জলী রায় যশোরে ফেরেন। ৯ জুন তার করোনা পজিটিভ রেজাল্ট পাওয়া যায়। পরদিন ডা. দিলীপ রায় ও তার মেয়ে সন্তান দেবযানি রায়ের (১৫) ফলাফল পজিটিভ এসেছে।

কবি নজরুল উচ্চ বিদ্যালয়ের ইংরেজী শিক্ষক এম.এ.মান্নান ঘুরে ঘুরে করোনা প্রতিরোধে মাস্ক বিতরণ করছেন

কবি নজরুল উচ্চ বিদ্যালয়ের ইংরেজী শিক্ষক এম.এ.মান্নান ঘুরে ঘুরে করোনা প্রতিরোধে মাস্ক বিতরণ করছেন

                                                                                      


কপোতাক্ষ নিউজ ডেস্ক:   
টাংগাইলের নাগরপুর উপজেলার কবি নজরুল উচ্চ বিদ্যালয়ের ইংরেজী বিভাগের রির্সোস টিচার(আরটি) জ্বনাব ডা.এম.এ.মান্নান "নাগরপুর বাজার সহ আশে পাশে মাঠে ঘাটে ও মসজিদে মসজিদে ঘুরে ঘুরে করোনা প্রতিরোধের জন্য সামাজিক দুরত্ব বজায় রেখে সকল শ্রেনীর মানুষের মাঝে মাস্ক বিতরণ করেছেন।     
                                                  আজ বৃহস্পতিবার  ১১ জুন ২০২০ খ্রি.সন্ধা সাতটায় প্রায় ৭০ জন নাগরিকদের মাঝে মাস্ক বিতরন করেছেন ইংরেজী শিক্ষক জ্বনাব এম.এ.মান্নান।          
                                                    নাম প্রকাশ করতে রাজি নন এমন এক সিনিয়র শিক্ষক বলেন-জ্বনাব ডা.এম.এ.মান্নান আমাদের ছাত্র।তিনি একজন ইংরেজী শিক্ষক ও হোমিও চিকিৎসক হয়ে ঘুরে ঘুরে মাস্ক বিতরন করছে এটা শিক্ষক মহলের জন্য একটা গর্বের বিষয়। আমি যতটুকু জানি এম.এ.মান্নানের বিষয়ে তিনি একজন সৎ ও পরহেজগার ব্যক্তি। ছাত্র জিবন থেকেই তিনি অসহায় মানুষ ও অসহায় ছাত্রদের বিভিন্ন ভাবে সহযোগিতা করে আসছেন। জ্বনাব মান্নান নি:সন্দেহ একজন জনদরদী ও আর্দশ শিক্ষক এবং মানবিক ডাক্তার। 
                                             ঘুণীপাড়া আব্দুল রশিদ স্কুল এন্ড কলেজ এর গনিত বিভাগের রির্সোস টিচার জ্বনাব আপেল মাহমুদ বলেন-জ্বনাব ডা.এম.এ.মান্নান স্যার তিনি একজন সৎ শিক্ষক ও হোমিও চিকিৎসক । তিনি এই সময়ে অসহায় মানুষের পাশে দাড়িয়েছে এটা আমাদের জন্য গর্বের বিষয়। তিনি বিভিন্ন সময় গরীব ছাত্রদেরকেও সহযোগিতা করেছেন। এক কথা বলতে গেলে তিনি আমাদের প্রিয় কলিগ কারন সব ভাল কাজে তাকে আমরা আরটি পরিবার পাশে পাই।              
                                                                         জ্বনাব ডা.এম.এ.মান্নানের  চাচাতো ভাই সাংবাদিক সজিব হুসাইন  হাসান বলেন-মান্নান ভাই শুধু শিক্ষকই নন তিনি একজন রেজিস্টার্ড হোমিও চিকিৎসক। আমি যতটুকু জানি মান্নান ভাই সব সময় অসহায় মানুষকে নিয়ে ভাবে। তিনি কয়েক বছর যাবত ফ্রি চিকিৎসার পাশাপাশি ফ্রি মেডিসিন ও দিয়ে আসছেন। করোনা কে কেন্দ্র করে কয়েক ধাপে ডা.মান্নান ভাই অসহায় ও কর্মহীনদের মাঝে চাল,শাকসবজি, শুকনা খাবার,সাবান,হ্যান্ডস্যানিটাইজার ও অসহায় ছাত্রদের শিক্ষা উপকরন বিতরন করে আসছেন। তিনি একজন সমাজসেবক ও ছাত্রবন্ধু।এক কথায় বলতে গেলে  মান্নান ভাইয়ের গুন বলে শেষ করা যাবে না।                                
                                              ইংরেজী শিক্ষক জ্বনাব এম.এ.মান্নান এর কাছে তার অভিমত জানতে চাইলে বলেন- আমি আমার সাধ্যমত মানুষের পাশে দাড়ানোর চেষ্টা করি।করোনা প্রতিরোধ করার জন্য কাজ করা সকল নাগরিকের নৈতিক দায়িত্ব। আমি আমার দায়িত্ব পালন করার চেষ্টা করছি । আমি সকল পেশার মানুষকে অসহায় মানুষের পাশে দাড়ানোর আহবান করছি।আমি সরকারের দেওয়া স্বাস্হবিধি সহ সকল নিয়মকানুন মেনে চলার জন্য সকল নাগরিকদের বিনিতভাবে অাহবান করছি। মহান আল্লাহ যেন আমাদের করোনা সহ সকল প্রকার মসিবত থেকে হেফাজত করেন, আমিন।

সাতক্ষীরার উপকূলীয় অঞ্চলে স্থায়ী বেঁড়িবাধ নির্মাণে প্রস্তুত বাংলাদেশ সেনাবাহিনী

সাতক্ষীরার উপকূলীয় অঞ্চলে স্থায়ী বেঁড়িবাধ নির্মাণে প্রস্তুত বাংলাদেশ  সেনাবাহিনী






ডেস্ক রিপোর্টঃ   সাতক্ষীরায়

সেনাবাহিনী প্রধান জেনারেল জনাব, আজিজ আহমেদ মহাদয়  বলেছেন, দেশের প্রয়োজনে জাতির প্রয়োজনে সেনাবাহিনী বেড়িবাঁধ নির্মাণসহ যে কোন কাজ করবে।

সাতক্ষীরার উপকূলীয় এলাকায় বেড়িবাঁধ নির্মাণ কাজের দায়িত্ব পেলে সেনাবাহিনীর নিজ দায়িত্ব নিয়ে সেটা করবে বলে জানান সেনাপ্রধান। সাতক্ষীরা সার্কিট হাউজে ঘূর্ণিঝড় আম্ফানে ক্ষতিগ্রস্থ এলাকা পরিদর্শনকালে সাংবাদিকদের প্রশ্নের জবাবে এ কথা বলেন সেনাপ্রধান।

চট্রগ্রামের জলাবদ্ধতার মেগা প্রজেক্ট সেনাবাহিনী করছে। সিরাজগঞ্জ ও জামালপুরের বাঁধ রক্ষার কাজ সেনাবাহিনী সফলভাবে করছে বলেও উল্লেখ করেন তিনি।

জেনারেল আজিজ আহমেদ মহাদয়  আরও বলেন, সূপেয় পানি সংকটেও সহায়তা করতে প্রস্তুত আছে সেনাবাহিনী। সংশ্নিষ্টরা চাইলে ওয়াটার ট্রিটমেন্ট প্লান্ট সরবরাহ করা হবে। এছাড়া ঘর নির্মাণসহ খাদ্য সহায়তাও দিয়ে যাচ্ছে সেনাসদস্যরা। সেই সঙ্গে মাসব্যাপী গর্ভবতী নারীদের চিকিৎসা সেবা দিবে মেডিক্যাল কোরের সদস্যরা। 
সেখানকার সাধারণ জনগণের দাবী দাবার একটাই কথা উঠে আসে ভেঁড়িবাধ মজবুত টেকসই চাই। আমাদের জীবণ সবসময়ের জন্য আতঙ্কে থাকে সেই জন্য বাংলাদেশ সেনাবাহিনীর এই উদ্যোগ আমাদের উপকূলীয় অঞ্চলের মানুষ নদী ভাঙ্গনের কবল থেকে বাঁচতে পারবে। সেনাবাহিনীর প্রধান সাতক্ষীরা পরিদর্শন করতে যাওয়ায় সাতক্ষীরা উপকূলীয় মানুষ অনেক ধন্যবাদ জানান সেনা প্রধান মহাদয়কে।
এদিকে
লকডাউনের বিষয়ে সেনাপ্রধান বলেন, স্থানীয় প্রশাসনের প্রয়োজনে সেনাবাহিনী কাজ করছে করোনা পরিস্থিতি মোকাবিলায় এবং করে যাবে। দেশ ও জাতির কল্যাণ এর জন্য সেনাবাহিনী জাক করছে।

সেনাবাহিনী প্রধানের সাতক্ষীরা সফর কালে ফুলেল শুভেচ্ছা বিনিময় করেন সাতক্ষীরা জেলা পুলিশ সুপার

সেনাবাহিনী প্রধানের সাতক্ষীরা সফর কালে ফুলেল শুভেচ্ছা বিনিময় করেন সাতক্ষীরা জেলা পুলিশ সুপার


,
ডেস্ক রিপোর্টঃ
১১-০৬-২০২০
সেনাবাহিনী প্রধান জেনারেল আজিজ আহমেদ মহোদয়ের সাতক্ষীরা জেলা সফরে জেলা পুলিশ সাতক্ষীরার পক্ষ থেকে  ফুলেল শুভেচ্ছা জানান সাতক্ষীরা জেলা পুলিশ সুপার জনাব, মোস্তাফিজুর রহমান মহাদয়। সেই সাথে আইন শৃঙ্খলা বজায় রাখা প্রশাসনের ও প্রশাসক এর কার্যক্রম সম্বন্ধে আলোচনা ও মত বিনিময় করেন।

সেনাবাহিনীর অর্থায়নে ২৫ টি পরিবারে কাপড় ও বস্ত্র বিতরণ

সেনাবাহিনীর অর্থায়নে ২৫ টি পরিবারে কাপড় ও বস্ত্র বিতরণ




 মিঠুন কুমার রাজ 
পিরোজপুজ জেলা প্রতিনিধিঃ
 করোনাভাইরাস কোভিড-১৯ আক্রমণে মানুষের জীবনমান যখন বিপর্যস্ত, বেঁচে থাকার লড়াই করেন যাচ্ছেন,ঠিক তখনই পিরোজপুর জেলার ইন্দুরকানী উপজেলার বালিপাড়ার ০১ নং ওয়ার্ডের সেনাবাহিনী মোঃ হেলাল হোসেন হাওলাদারের নিজেস্ব অর্থায়নে ২৫টি পরিবারকে কাপড় ও বস্ত্র বিতরণ করেন। শনিবার ০১ নং ইউনিয়নের বটতলা বাজারের সামনে বসে সেনাবাহিনী মোঃ হেলাল এর বড় বোন তাসলিমা বেগম ভাইয়ের পক্ষ থেকে এসব উপহার সামগ্রী এলাকার হতদরিদ্রদের মাজে বিতরণ করেন। দেশে করোনার প্রভাব ছাড়া ও প্রতি বছরই ওয়ার্ডের হতদরিদ্রের সামর্থ অনুযায়ী সহযোগীতার হাত বাড়িয়েছেন মোঃ হেলাল হাওলাদার। আমি অসহায় মানুষের পাশে ছিলাম আছি এবং থাকব ইনশাআল্লাহ।

কুষ্টিয়ায় আজ করোনা শনাক্ত ২৪ জন

কুষ্টিয়ায় আজ  করোনা শনাক্ত ২৪ জন





কুষ্টিয়া প্রতিনিধি। 



কুষ্টিয়ায় আজ (১১ জুন) ২৪ করোনা রোগী শনাক্ত হয়েছে। এ নিয়ে কুষ্টিয়ায় মোট করোনা আক্রান্তের সংখ্যা দাঁড়ালো ২০২।
কুষ্টিয়া জেনারেল হাসপাতালের আবাসিক মেডিকেল অফিসার তাপস কুমার সরকার জানান ১১ জুন পিসিআর ল্যাবে কুষ্টিয়ার ১২১টি নমুনা পরীক্ষা করা হয়। এর মধ্যে ২৪টি পজিটিভ পাওয়া যায়।
নতুন আক্রান্তদের মধ্যে কুষ্টিয়া সদর উপজেলার ২০ জন, দৌলতপুরের ১ জন , মিরপুরের ৩ জন। এদের মধ্যে বেশ কয়েকজন পুলিশ সদস্য রয়েছে বলে জানানো হয়েছে।
সদর উপজেলায় আক্রান্তদের বাড়ি শহরের পুলিশ লাইন,বাড়াদি, হরিনারায়ণপুর, হাউজিং, কোর্টপাড়া এলাকায়।
এদের মধ্যে ১৯ জন পুরুষ ও ৫ জন নারী।
গতকাল কুমারখালিতে সনাক্ত হওয়া একজন নারী ফলোআপ পজিটিভ হওয়ায় তাকে হিসাব থেকে বাদ দেওয়া হয়েছে।
এ পর্যন্ত উপজেলা ভিত্তিক আক্রান্তের পরিমাণ দাঁড়ালো দৌলতপুর ২৯, ভেড়ামারা ৩৩, মিরপুর ১৮, সদর ৮৫,কুমারখালী ২৫, খোকসা ১২। এ যাবৎ সুস্থ হয়ে ছাড়া পেয়েছেন মোট ৩৯ জন।
উপজেলা ভিত্তিক সুস্থ ৩৭ জন। বর্তমানে হোম আইসোলেশনে চিকিৎসাধীন ১৫৬ জন। হাসপাতালে চিকিৎসাধীন ৭ জন। খুলনায় চিকিৎসাধীন ২ জন।

২০২০-২০২১ অর্থ বছরে বাজেটে দাম বাড়ছে যেসব পণ্যের

২০২০-২০২১ অর্থ বছরে বাজেটে দাম বাড়ছে যেসব পণ্যের




সম্রাট হোসেন / স্টাফ রিপোর্টারঃ  
দেশে চলমান করোনা ভাইরাস পরিস্থিতিতে ২০২০-২১ অর্থবছরের প্রস্তাবিত বাজেটে বিভিন্ন খাতের কিছু পণ্যের শুল্ক বাড়ানোর প্রস্তাব করা হয়েছে। বৃহস্পতিবার (১১ জুন) বিকেল সোয়া ৩টায় জাতীয় সংসদে অর্থমন্ত্রী আ হ ম মুস্তফা কামাল এ বাজেট উত্থাপন করেন।

এটি দেশের ৪৯তম ও বর্তমান সরকারের তৃতীয় মেয়াদের দ্বিতীয় বাজেট। আর অর্থমন্ত্রী হিসেবে আ হ ম মুস্তফা কামালের দ্বিতীয় বাজেট।

যেসব পণ্যের দাম বাড়বে। যেমন- আমদানি করা পেঁয়াজ, এয়ারকন্ডিশনার, প্রসাধনী সামগ্রী, মোবাইল ফোন সেবা খরচ, ইন্টারনেট সেবা, বিড়ি ও সিগারেট, আলোকসজ্জা সামগ্রী, গাড়ি রেজিস্ট্রেশন খরচ, গাড়ি, শ্যাম্পু, চকলেটসহ বিদেশি টিভিতে দাম বাড়ানোর প্রস্তাব করা হয়েছে।

প্রস্তাবিত বাজেটে যেসব পণ্যের দাম বাড়ানোর প্রস্তাব করা হয়েছে৷ যেমন, শীতাতপ নিয়ন্ত্রিত লঞ্চের টিকিট খরচ বাড়বে। আগে ৫ শতাংশ মূল্য সংযোজন কর ছিল, নতুন অর্থবছরে তা বাড়িয়ে ১০ শতাংশ করার প্রস্তাব করা হয়েছে।

চার্টার্ড ফ্লাইট ও হেলিকপ্টার ভাড়ার ওপর সম্পূরক শুল্ক ২৫ শতাংশ থেকে ৩০ শতাংশ করার প্রস্তাব করা হয়েছে। প্রসাধনী সামগ্রীর ওপর সম্পূরক শুল্ক ৫ থেকে ১০ শতাংশ করার প্রস্তাব করা হয়েছে। পেঁয়াজ আমদানিতে কিছুটা শুল্ক আরোপ হবে। আসবাবপত্র কেনায় মূসক বেড়েছে। ৫ থেকে সাড়ে ৭ শতাংশ করা হয়েছে। মোবাইল ফোনে কথা বলার ওপর কর বাড়ছে।

প্রাইভেটকার ও জিপ রেজিস্ট্রেশনসহ বিআরটিএ প্রদত্ত অন্যান্য সার্ভিস ফির ওপর সম্পূরক শুল্ক ১০ শতাংশ থেকে বাড়িয়ে ১৫ শতাংশ করার প্রস্তাব করা হয়েছে। সিরামিকের সিঙ্ক বেসিনের ওপর ১০ শতাংশ সম্পূরক শুল্ক আরোপ করা হয়েছে। মধুর বাল্ক আমদানি শুল্ক বাড়ছে। বিদেশি মধুর দাম বাড়বে।

এছাড়া হাতে তৈরি খাবার, গুঁড়া দুধ, রং, অনলাইন খাবার, অনলাইন কেনাকাটা, সোডিয়াম, সালফেড, আয়রন স্টিল, স্ক্রু, বার্নিস, বাইসাইকেল, কম্প্রেসার শিল্পে ব্যবহৃত উপকরণ, বিদেশি মোটরসাইকেল বডি স্প্রে, স্মার্টফোন, ফলের জুস, বোতলজাত পানি, আমদানি করা অ্যালকোহল, কোমল পানীয় পলিথিন ব্যাগের দাম প্রস্তাবতি বাজেট বাড়ানোর প্রস্তাব করা হয়েছে।

প্রস্তাবিত ২০২০-২১ অর্থবছরের আকার ৫ লাখ ৬৮ হাজার কোটি টাকা। যা জিডিপির ১৭ দশমিক ৯ শতাংশ। প্রস্তাবিত বাজেটে পরিচালনসহ অন্যান্য ব্যয় বাবদ খরচ ধরা হচ্ছে ৩ লাখ ৬২ হাজার ৮৫৫ কোটি টাকা। বার্ষিক উন্নয়ন কর্মসূচিতে বরাদ্দ ধরা হয়েছে ২ লাখ ৫ হাজার কোটি টাকা।

রাজস্ব আয়ের প্রস্তাব করা হয়েছে ৩ লাখ ৮২ হাজার ১৬ কোটি টাকা। এর মধ্যে জাতীয় রাজস্ব বোর্ডকে (এনবিআর) রাজস্ব আদায়ের লক্ষ্যমাত্রা দেওয়া হচ্ছে ৩ লাখ ৩০ হাজার কোটি টাকা। এনবিআর বহির্ভূত করসমূহ থেকে রাজস্বে লক্ষ্যমাত্রা নির্ধারণ করা হয়েছে ১৫ হাজার কোটি টাকা। এছাড়া কর ব্যতীত রাজস্বের লক্ষ্যমাত্রা নির্ধারণ করা হয়েছে ৩৩ হাজার কোটি টাকা। প্রস্তাবিত বাজেটে মোট ঘাটতির পরিমাণ দাঁড়াচ্ছে ১ লাখ ৯০ হাজার কোটি টাকা। যা জিডিপির ৬ শতাংশ। এ হার গত বাজেটে ছিল ৫ শতাংশ।

সিংড়ায় করোনা উপসর্গ নিয়ে ১ জনের মূত্যু

সিংড়ায় করোনা উপসর্গ নিয়ে ১ জনের মূত্যু





রাজু আহমেদ, সিংড়া: 
নাটোরের সিংড়ায় করোনা উপসর্গ নিয়ে অরুন কুমার ওরফে অনিক (৫০) নামে ১ ব্যক্তির মুত্যু হয়েছে।  
সে রাজশাহীর চারঘাটের বজেন্দ্রনাথের পুত্র।

বৃহস্পতিবার বিকেল ৫ টার দিকে সিংড়া উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্স এ তাঁর স্বজনরা নিয়ে আসলে কর্তব্যরত ডাক্তার মৃত ঘোষনা করে। 

জানা যায়, অরিন ওরফে অনিক তিনদিন আগে ঢাকা থেকে সিংড়া পৌর এলাকা মাদারীপুর মহল্লায় তাঁর এক স্বজনের বাড়ি বেড়াতে আসে। সে ঔষধ কোম্পানিতে কর্মরত ছিলো বলে জানা যায়। 
বৃহস্পতিবার সকালে তাঁর স্বজনরা করোনা উপসর্গ থাকায়  সিংড়া উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্স এ নিয়ে আসে।  পরে স্বাস্থ্য কমপ্লেক্স থেকে নমুনা সংগ্রহ করা হয়। 
বিকেলে পুনরায় নিয়ে আসলে কর্তব্যরত ডাক্তার মৃত ঘোষনা করে। পরে মৃতের লাশ চারঘাট নিয়ে যাওয়া হয়। 

উপজেলা স্বাস্থ্য ও প: প: কর্মকর্তা ডা: আমিনুল ইসলাম জানান, বৃহস্পতিবার সকালে সর্দী,কাশি জ্বর নিয়ে তাঁর স্বজনরা মেডিকেলে নিয়ে আসলে নমুনা সংগ্রহ করে প্রাথমিক চিকিৎসা প্রদান শেষে বাসায় নিয়ে যায়, পরে বিকেলে পুনরায় হাসপাতালে নিয়ে আসলে কর্তব্যরত ডাক্তার মৃত ঘোষনা করেন।


ঝিকরগাছায় হিজড়া সম্প্রদায়ের মধ্যে খাদ্য সহায়তা প্রদাণ

ঝিকরগাছায় হিজড়া  সম্প্রদায়ের মধ্যে খাদ্য সহায়তা প্রদাণ





মোঃ ইকরামুল করিম সৈকত, 
ঝিকরগাছা (যশোর) প্রতিনিধিঃ

যশোর-২ (চৌগাছা-ঝিকরগাছা) আসনের মাননীয় জাতীয় সংসদ সদস্য বীর মুক্তিযোদ্ধা মেজর জেনারেল (অবঃ) ডাঃ নাসির উদ্দীনের দিকনির্দেশনায় ঝিকরগাছা উপজেলার ত্রাণ তহবিল থেকে ঝিকরগাছা উপজেলার পার বাজার বহিলা পাড়ার হিজড়া সম্প্রদায়ের মধ্যে খাদ্য সহায়তা প্রদান করা হয়েছে।

ঝিকরগাছা উপজেলা পরিষদের চেয়ারমান জনাব মনিরুল ইসলামের উপস্থিতিতে খাদ্য সহায়তা প্রদান করা হয়। 

এসময় উপস্থিত ছিলেন ঝিকরগাছা উপজেলা নির্বাহী অফিসার জনাব সুমী মজুমদার, ঝিকরগাছা উপজেলা পরিষদের ভাইস চেয়ারম্যান জনাব মোঃ সেলিম রেজা, মহিলা ভাইস চেয়ারম্যান লুবনা তাক্ষী, ঝিকরগাছা থানার অফিসার ইনচার্জ জনাব আব্দুর রাজ্জাক। উপস্থিত ছিলেন যশোর জেলা যুবলীগের সহ-সভাপতি আজাহার আলী, ঝিকরগাছা উপজেলা ছাত্রলীগের সাবেক সভাপতি ও যুবলীগ নেতা রফিকুল ইসলাম বাপ্পী, সাবেক সাধারণ সম্পাদক ও যুবলীগ নেতা শামীম রেজা, ঝিকরগাছা প্রেস ক্লাবের সাধারণ সম্পাদক ইমরানুর রশিদ, যুবলীগ নেতা জাফিরুল হক রনি, উপজেলা ছাত্রলীগ নেতা আরিফ রহমান,  আরাফাত হোসেন শান্ত, বাইজীদ রাহুল, সজীব প্রমূখ।

মোংলা বন্দরে জাহাজে চীনা নাগরিকের মৃত্যু!

মোংলা বন্দরে জাহাজে চীনা নাগরিকের মৃত্যু!






মোঃএরশাদ হোসেন রনি, মোংলা   
মোংলা বন্দরে আগত একটি বিদেশি জাহাজের চীফ ইঞ্জিনিয়ার (প্রধান প্রকৌশলী) হৃদযন্ত্রক্রিয়া বন্ধ হয়ে মারা গেছেন। তার নাম ফ্যান হংজি (৪৩)। চীনা নাগরিক এই প্রকৌশলী গত ১০ জুন বুধবার  সন্ধ্যায় জাহাজেই কর্মরত অবস্থায় স্ট্রোক করে মারা যান। মোংলা বন্দর কর্তৃপক্ষের হারবার মাষ্টার কমান্ডার শেখ ফকর উদ্দিন তথ্য নিশ্চিত করেছেন। তবে মারা যাওয়া চীনা ওই নাগরিকের শরীরে করোনা উপসর্গ ছিলো না বলে দাবি করেন তিনি। দীর্ঘ সাত মাস ফ্যান হংজি (৪৩) জাহাজে কর্মরত ছিলেন বলেও হারবার মাষ্টার জানান। সিঙ্গাপুর পতাকাবাহী ‘এপিক সেন্ট কিটসথ জ্বালানী গ্যাসের কাঁচামাল নিয়ে বুধবার (১০ জুন) বিকেলে মোংলা বন্দরের বেসক্রিকের ২ নম্বর বয়ায় অবস্থান করে। জাহাজটি মোংলা বন্দরের শিল্প এলাকায় অবস্থিত এনার্জিপ্যাকের গ্যাস কারখানার কাঁচামাল নিয়ে আসে বলে বন্দরের হারবার বিভাগ জানায়। বন্দরে আসা বিদেশী ওই জাহাজটির শিপিং এজেন্ট মের্সাস ইউনি গ্লোবালের এজিএম (সহকারী ব্যবস্থাপক) সৈয়দ মামুনুল ইসলাম বলেন, মারা যাওয়া চীনা ওই নাগরিকের মরদেহ ডাক্তারী পরীক্ষা শেষে মোংলা থানায় জিডি করা হবে। এরপরে খুলনা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালের হিমাগারে রাখা হবে। সেখানে অফিসিয়াল কার্যক্রম শেষে মরদেহ তার দেশে পাঠানো হবে বলেও জানান তিনি।

শৈলকুপা উপজেলার বিভিন্ন গ্রামে গরু চুরির আতঙ্ক বিরাজ করছে!

শৈলকুপা উপজেলার বিভিন্ন গ্রামে গরু চুরির আতঙ্ক বিরাজ করছে!




সম্রাট হোসেন শৈলকুপা (ঝিনাইদহ) উপজেলা প্রতিনিধিঃ গরীবের পুঁজি বলতে গোয়ালের বাধা দুই এক টা গরু ছাড়া আর কিছু না। সকাল ৫ টাই ঘুম থেকে উঠে চলে যাই গরুর খাবার কলা গাছ, কলার পুয়া সংগ্রহ করতে এবং দুপুর থেকে সারা  বিকাল কাঁচা ঘাস সংগ্রহ করে রাতে ধানের খড়ের সাথে মিসিয়ে খাওয়াই। চোখে না দেখলে বিশ্বাস করা যাবে না যে কত কষ্ট করে তারা গরু পালন করে। কোরবানির ঈদের সময় গরু বিক্রয় করে মুখে একটু হাসি ফোটাতে চাই। তখনই রাতের আধারে সব গরু চুরি করে নিয়ে যায় গরু চোর। বিষয় টি অনেক গরুত্ব পূর্ণ হলেও আজ পর্যন্ত চোখে পড়ার মতন কোন একশন গ্রহন করেনি  পুলিশ বা নির্বাচিত প্রতিনিধিরা।২০১৯ সালে প্রায় ১৫০/১৬০ টির মতো গরু চুরি হয়।এবং এই বছর করোনা ভাইরাস এর মাঝে   ২ মাসের মাঝে প্রায়ই ১০ টির মতোন গরু চুরি হয়েছে। গত কাল উপজেলার চাঁদপুর গ্রামের  গোলাম নামের এক গরীব অসহায় ব্যাক্তির গোয়ালে দুইটা গরুছিল দুইটাই নিয়ে গেছে। 
গত বছর উপজেলার বেড়বাড়ি গ্রামে নসিমন চালক সিপনের বাড়ি থেকে তিনটা গরু নিয়ে যায়। গরু বিক্রয় করে সে তার মেয়ের জন্য কিছু জিনিস দিতে চেয়েছিলেন। এই রকম শতশত গরু চাষির ঘুম হারাম হয়ে গেছে। উল্লেখ্য গত বছর উপজেলার মহেষপুর গ্রাম থেকে  একজন গরু চোর কে ধরা হয়।তার বাড়ি ছিলো কুষ্টিয়ায়। রাস্তায় ট্রাক রেখে তারা বেশ কই এক জন মিলে গরু চুরি করতে আসে। এই সময় এলাকা বাসি  ধাওয়া করলে ট্রাক নিয়ে সবাই পালিয়ে গেলেও এক জন ধরা পড়ে যায় কিন্তুু তার কোন বিচার হয়নি। তাই প্রশাসনের নিকট এলাকা বাসির জোর দাবি যে কনো মূল্যে গরু চুরি থামাতেই হবে।

নাটোরের বড়াইগ্রামে মুক্তিযোদ্ধাকে রাষ্ট্রীয় মর্যাদায় দাহ সম্পন্ন

নাটোরের বড়াইগ্রামে মুক্তিযোদ্ধাকে রাষ্ট্রীয় মর্যাদায় দাহ সম্পন্ন





রাজশাহী ব্যুরো
নাটোরে বড়াইগ্রামের লক্ষীকোল গ্রামের মুক্তিযোদ্ধা পরেশ চন্দ্র কর্মকার (৬৮) পরলোকগমন করেছেন। 
বৃহস্পতিবার ভোর সাড়ে ৫টার দিকে শারীরিক অসুস্থতা জনিত কারণে নিজ বাড়িতে তিনি পরলোকগমন করেন। মৃত্যুকালে তিনি স্ত্রী ও দুই ছেলেসহ অসংখ্য গুণগ্রাহী রেখে গেছেন। সকাল সাড়ে ১০টার দিকে লক্ষীকোল মন্দির প্রাঙ্গনে রাষ্ট্রীয় মর্যাদায় গার্ড অফ অনার প্রদান শেষে তার লাশ দাহ করা হয়। গার্ড অফ অনার প্রদান অনুষ্ঠানে উপজেলা নির্বাহী অফিসার আনোয়ার পারভেজ, বড়াইগ্রাম পৌর আওয়ামীলীগের সভাপতি আব্দুর রাজ্জাক সরকার, জেলা পরিষদ সদস্য আবুল কালাম জোয়াদ্দার, বড়াইগ্রাম পৌরসভার সচিব জালাল উদ্দিন সহ বিভিন্ন শ্রেণী পেশার মানুষ উপস্থিতি ছিলেন।

নওগাঁয় ফেন্সিডিল সহ যুবক আটক

নওগাঁয়  ফেন্সিডিল সহ যুবক আটক





 মোঃ ফিরোজ হোসাইন
রাজশাহী ব্যুরো
     
নওগাঁর আত্রাইয়ে ৩৫ পিচ ফেন্সিডিল, হিরোগ্লামার মটরসাইকেল সহ সেলিম (২৪)নামে এক যুবককে আটক করেছে আত্রাই থানা পুলিশ। আটককৃত চাপাইনবাবগঞ্জ জেলাধীন শিবগঞ্জ উপজেলার দাদলগাছী গ্রামের মৃত আব্দুল মান্নানের ছেলে।

থানাসূত্রে জানা যায়, বৃহস্পতিবার বিকেলে মটর সাইকেলে ফেন্সিডিল বিক্রির উদ্দেশ্যে এলাকায় যুবক আসছে এমন সংবাদের ভিত্তিতে আত্রাই থানার এসআই প্রদীপ কুমার সরকার ও মোস্তাফিজুর রহমান সঙ্গীয় ফোর্স সহ উপজেলার রেলগেট এলাকায় অভিযান চালায়। তথ্যের সাথে মিলে যাওয়ায় গাড়ী নিয়ন্ত্রনে নিয়ে জিজ্ঞাসাবাদ কালে সন্দেহ হওয়ায় সার্চ করে গাড়ীর বিভিন্ন স্থানে রাখা ৩৫ পিচ ফেন্সিডিল পায়।

আত্রাই থানা ওসি মোসলেম উদ্দিন বলেন, আটককৃত সেলিমের বিরুদ্ধে মাদকদ্রব্য আইনে মামলা দায়ের করা হয়েছে। তাকে নওগাঁ জেল হাজতে পাঠানো হবে।

ঝিনাইদহে সংঘর্ষে আহত যুবক ফারুক হোসেনের চিকিৎসাধীন অবস্থায় ঢাকা মেডিকেলে মৃত্যু!

ঝিনাইদহে সংঘর্ষে আহত যুবক ফারুক হোসেনের চিকিৎসাধীন অবস্থায় ঢাকা মেডিকেলে মৃত্যু!






খোন্দকার আব্দুল্লাহ বাশার, ঝিনাইদহ জেলা প্রতিনিধি 



ঝিনাইদহে বিএনপি থেকে আওয়ামী লীগে যোগদানকে কেন্দ্র করে দু’দল গ্রামবাসীর সংঘর্ষে আহত যুবক ফারুক হোসেন চিকিৎসাধীন অবস্থায় ঢাকা মেডিকেলে মারা গেছে। বৃহস্পতিবার সকালে তার মৃত্যু হয়। 

পুলিশ জানায়, গত মঙ্গলবার সন্ধ্যায় পৌর এলাকার খাজুরা এলাকার জাহিদ হোসেনের নেতৃত্বে ৩৫/৪০ জন বিএনপি নেতাকর্মীরা স্থানীয় আওয়ামী লীগ নেতা লিটনের মাধ্যমে আওয়ামী লীগে যোগদান করে। এ ঘটনায় বুধবার রাতে আওয়ামী লীগের অপরপক্ষের নেতা আবুল হোসেনের সমর্থকরা জাহিদের লোকজনের উপর হামলা চালালে তাদের মাঝে সংঘর্ষ বেধে যায়। 

এতে উভয় পক্ষের অন্তত ২০ জন আহত হয়। আহতদের উদ্ধার করে ঝিনাইদহ সদর হাসপাতালে ভর্তি করা হলে এদের মধ্যে ফারুকের ভুড়ি বের হয়ে গেলে তাকে হোসেনকে উন্নত চিকিৎসার জন্য ঢাকায় রেফার্ড করা হয়। বৃহস্পতিবার সকালে ফারুক হোসেন চিকিৎসাধীন অবস্থায় মারা যায়। এদিকে স্থানীয়রা জানায়, মঙ্গলবার সন্ধ্যায় খাজুরা এলাকার জাহিদ হোসেনের নেতৃত্বে ৩৫/৪০ জন বিএনপি নেতাকর্মীরা স্থানীয় আওয়ামী লীগ নেতা লিটনের মাধ্যমে রাতে আনুষ্ঠানিক ভাবে আওয়ামী লীগে যোগদান করে ভুরিভোজ করেন। 

এ নিয়ে প্রতিপক্ষ গ্রুপ ক্ষিপ্ত হয়। বুধবার সকাল থেকে আওয়ামী লীগের অপরপক্ষের নেতা আবুল হোসেনের লোকজন নব্যযোগদান কৃত নেতাকর্মীদের উপর চড়াও হতে থাকে। সন্ধ্যায় একটি চয়ের দোকানে আবুলের সমর্থকরা জাহিদের লোকজনের উপর হামলা চালালে সংঘর্ষ বেধে যায়। এতে উভয় পক্ষের অন্তত ২০ জন আহত হয়। খবর পেয়ে পুলিশ ঘটনাস্থলে পৌঁছে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রনে আনে। 

আহতদের উদ্ধার করে ঝিনাইদহ সদর হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে। প্রত্যাক্ষদর্শী লিটন নামে একজন জানান, এ সময় তারা গুলি ও বোমার শব্দ শুনেছেন। ঝিনাইদহ সদর থানার ওসি মিজানুর রহমান খান বিষয়টি নিশ্চিত করে জানান, খাজুরা গ্রমে এখন পরিস্থিতি স্বাভাবিক রয়েছে। সেখানে অতিরিক্ত পুলিশ মোতায়েন করা হয়েছে।

নওয়াপাড়া পৌরসভার তিনটি ওয়ার্ড ও একটি গ্রামকে লকডাউন ঘোষণা

নওয়াপাড়া পৌরসভার তিনটি ওয়ার্ড ও একটি গ্রামকে লকডাউন ঘোষণা




মোঃ দেলোয়ার হোসেন, অভয়নগর (যশোর) প্রতিনিধি : 

প্রাণঘাতী করোনাভাইরাসে ইতোমধ্যে উপজেলায় ৪১জন রোগী শনাক্ত হওয়ায় অভয়নগর উপজেলা প্রশাসন নওয়াপাড়া পৌরসভার ৪,৫ ও ৬নং ওয়ার্ড এবং উপজেলার চলিশিয়া ইউনিয়নের ৬নং ওয়ার্ডের বাগদহ গ্রামটিকে লকডাউন ঘোষণা করেছে। উপজেলা নির্বাহী অফিসার ও করোনাভাইরাস প্রতিরোধ কমিটির সভাপতি মো. নাজমুল হুসেইন খাঁন স্বাক্ষরিত গণবিজ্ঞপ্তিতে লকডাউন ঘোষণার বিষয়টি জানা যায়। বৃহস্পতিবার স্বাক্ষরিত গণবিজ্ঞপ্তিতে জানা যায়, নওয়াপাড়া পৌরসভার ৪,৫ ও ৬নং ওয়ার্ডে করোনা আক্রান্ত রোগীর সংখ্যা বেশি হওয়ায় আগামীকাল ১২জুন ভোর ৬টা থেকে আগামী ২৫জুন পর্যন্ত এই তিনটি ওয়ার্ডে লকডাউন ঘোষণা করা হয়। অপরদিকে বুধবার উপজেলার চলিশিয়া ইউনিয়নের ৬নং ওয়ার্ডের বাগদহ গ্রামটিকে লকডাউন ঘোষণা করা হয়েছে। গণবিজ্ঞপ্তিতে সংক্রামক রোগ প্রতিরোধ, নিয়ন্ত্রণ ও নির্মূল আইন-২০১৮ অনুযায়ী করোনাভাইরাস রোধকল্পে জনগণের জন্য বেশ কয়েকটি শর্ত আরোপ করা হয়েছে।

মোহনগঞ্জে স্ত্রী হত্যায় স্বামী-শ্বশুর-শ্বাশুড়িসহ আটক ৪

মোহনগঞ্জে স্ত্রী হত্যায় স্বামী-শ্বশুর-শ্বাশুড়িসহ আটক ৪




আজহারুল ইসলাম, মোহনগঞ্জ (নেত্রকোনা): নেত্রকোনার মোহনগঞ্জে খুকুমনি (২০) নামে এক গৃহবধূকে হত্যার অভিযোগে স্বামী, শ্বশুর, শ্বাশুড়ি ও দেবরসহ পরিবারের চার সদস্যকে আটক করেছে পুলিশ।

উপজেলার তেুতলিয়া গ্রামের বাঘাপাড়ায় বুধবার (১০ জুন) দিবাগত রাত সাড়ে বারোটার দিকে এ হত্যাকাণ্ডের ঘটনা ঘটে। খবর পেয়ে পুলিশ গিয়ে ওই গৃহবধূর স্বামী মোতাকাব্বির, শ্বশুর গোলাম রব্বানি, শ্বাশুড়ি ফজিলত নেছা ও দেবর মুনতাসিরকে আটক করে। স্বামীর ঘর থেকে খুকুমনির লাশ উদ্ধার করে মর্গে পাঠানো হয়েছে।

এ ঘটনায়  বৃহস্পতিবার সকালে গৃহবধূর বাবা তুরিকুল ইসলাম বাদী হয়ে ওই চারজনকে আসামি করে হত্যা মামলা দায়ের করেন।

পুলিশ ও স্থানীয় সূত্রে জানা গেছে, তিন বছর আগে তেথুলিয়া গ্রামের রব্বানীর ছেলে মোতাকাব্বিরের সাথে বিয়ে হয় একই গ্রামের তরিকুল ইসলামের মেয়ে খুকুমনির। বিয়ের পর থেকে  স্বামী –স্ত্রী দুজনেই ঢাকায় পোশাক কারখানায় চাকরি করতে চলে যায়। করোনার কারণে কয়েক মাস আগে বাড়িতে এসে পড়েন তারা । সম্প্রতি মোতাকাব্বির ঢাকা গিয়ে ফের কাজে যোগ দেন। কিন্তু করোনার ভয়ে আবার চাকরিতে যেতে আপত্তি  জানায় খুকুমনি। এ নিয়ে তাদের দাম্পত্য কলহ সৃষ্টি হয়। এরই একপর্যায়ে বুধবার দিবাগত রাতে এ হত্যাকাণ্ডের ঘটনা ঘটে।

খুকুমনির ভাই ফরশাদ জানায়, রাতে আশপাশের মানুষের চিৎকার শুনে আমরা দৌড়ে গিয়ে দেখি খুকুমনির লাশ বিছানায় পড়ে আছে। পুলিশকে খবর দেব, দেখি মোবাইলে ব্যালেন্স নেই। এমনকি পুলিশের নাম্বারও ছিল না। পরে ৯৯৯ এ কল করে জানালে তারা মোহনগঞ্জ থানায় বিষয়টি অবহিত করে। খবর পেয়ে পুলিশ এসে তাদের আটক করে। 

মোহনগঞ্জ থানার ওসি মোহাম্মদ আবদুল আহাদ খান এ তথ্য নিশ্চিত করে বলেন, প্রাথমিকভাবে ধারণা করা হচ্ছে, শ্বাসরোধ করে হত্যা করা হয়েছে। লাশ ময়না তদন্তের জন্য পাঠানো হয়েছে। রিপোর্টে মৃত্যুর প্রকৃত কারণ জানা যাবে। এ ঘটনায় ওই গৃহবধূর বাবা হত্যা মামলা দায়ের করেছেন। আসামিদেরকে বিকালে আদালতে পাঠানো হয়েছে।

নওগাঁর আত্রাইয়ে মাছের সাথে শত্রুতা পুকুরে বিষ, থানায় অভিযোগ

নওগাঁর আত্রাইয়ে মাছের সাথে শত্রুতা পুকুরে বিষ, থানায় অভিযোগ





মোঃ ফিরোজ হোসাইন 
 রাজশাহী ব্যুরো

নওগাঁর আত্রাইয়ে পুকুরে বিষ দিয়ে ৪ লক্ষ টাকার মাছ নিধনে থানায় অভিযোগ করা হয়েছে। ঘটনাটি উপজেলার ভোঁপাড়া ইউনিয়নের খোলাপাড়া গ্রামে ঘটেছে। খবর পেয়ে পুকুর হতে মৃত মাছ এবং এক বোতল পানি জব্দ করেছে আত্রাই থানা পুলিশ।
থানা সূত্রে জানা যায়, মোল্লা আজাদ সরকারী বিশ্ববিদ্যালয় কলেজ ও প্রতিবেশী কয়েক জন মিলে পুকুর খনন করে ঐ গ্রামের সেলিম চেীধুরী এবং গেীতম কুমার সাহার নিকট দের লক্ষ টাকায় তিন বছরের জন্য লিজ দেয়।
লিজের সময় আগামী ১৯ জুন তারিখে শেষ হবে এবং নতুন করে অন্যলোক লিজ পাওয়ায় মাছ ধরার লক্ষ্যে তারা পুকুরে মেশিন ফেলে অর্ধেক পরিমান পানি শুকিয়ে ফেলে। বুধবার দিবাগত রাত্রি যেকোনো সময় পুকুরের পারে দেওয়া বেড়া কেটে পুকুরে বিষ দিয়ে চলে যায় দুর্বৃত্তরা।
সকালে মাছ ধরার জন্য জাল সহ জেলেদের নিয়ে পুকুরে গিয়ে মাছ মরে ভাঁসতে দেখে থানায় খবর দিলে পুকুরে ভেঁসে ওঠা মাছ ও বিষ মিশৃত এক বোতল পানি জব্দ করে। সেলিম চেীধুরী ও গেীতম কুমার জানায়, আমাদের শেষ সম্বল খুয়ে পুকুর লিজ  নিয়ে ছিলাম। বিষ প্রয়োগের ফলে চার লাখ টাকার উপরে আমাদের ক্ষতি হয়েছে। আজ নিঃস্ব হয়ে পরিবার পরিজন নিয়ে পথে বসে গেলাম। এসময় তারা প্রশাসনের কাছে তাদের ক্ষতিপূরণ এবং অপরাধীদের চরম শাস্তির দাবি জানান।
আত্রাই থানা ওসি মোসলেম উদ্দিন বলেন, অভিযোগ পেয়েছি। তদন্ত করে প্রয়োজনীয় ব্যবন্থা নেওয়া হবে।

নাটোরে ইয়াবা সহ আটক-২

নাটোরে ইয়াবা সহ আটক-২





রাজশাহী ব্যুরো
নাটোরের বড়াইগ্রামে ইয়াবাসহ মারুফ হোসেন মুন্না( ২০)ও আশিক হোসেন( ২২) নামের দুই যুবককে আটক করেছে ডিবি পুলিশ। 

গতকাল বুধবার বিকেল সাড়ে চারটার দিকে ৮০পিস ইয়াবাসহ উপজেলার খোর্দকাছুটিয়া থেকে তাদের আটক করা হয়। মারুফ হোসেন উপজেলার খোর্দকাছুটিয়া গ্রামের রিয়াজ উদ্দিনের ছেলে এবং আশিক হোসেন একই গ্রামের আশরাফ মন্ডলের ছেলে।

ডিবি পুলিশের ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা আনারুল ইসলাম জানান, গোপন সংবাদের ভিত্তিতে ডিবি পুলিশের একটি দল বড়াইগ্রাম উপজেলার খোর্দকাছুটিয়া গ্রামে অভিযান পরিচালনা করে। 

এ সময় ইয়াবা সংরক্ষণ এবং বিক্রয়কালে মারুফ হোসেন মুন্না ও আশিক হোসেনকে হাতেনাতে আটক করা হয়।

 এসময় আতিক নামের আরও এক যুবক পালিয়ে যায়। তাদের বিরুদ্ধে মাদকদ্রব্য নিয়ন্ত্রণ আইনে মামলা দায়েরের পর বড়াইগ্রা থানায় হস্তান্তর করা হয়েছে। 

বড়াইগ্রাম থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা দিলিপ কুমার দাস বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন।

মধুপুরে মাদকের ভয়াবহ ছোবল থেকে এলাকা সুরক্ষায় প্রেস ব্রিফিং ও আলোচনা

মধুপুরে মাদকের ভয়াবহ ছোবল থেকে এলাকা সুরক্ষায় প্রেস ব্রিফিং ও আলোচনা




মো: আ: হামিদ মধুপুর টাঙ্গাইল প্রতিনিধিঃ

টাঙ্গাইলের মধুপুরে মাদকের ভয়াবহ ছোবল থেকে এলাকা সুরক্ষায় প্রেস ব্রিফিং ও আলোচনা সভা অনুষ্ঠিত।
মহামারি করোনা ভাইরাসের মরণ ছোবলে দেশের মানুষ আজ দিশেহারা তখনই এই দূর্বলতাকে কাজে লাগিয়ে কিছু মাদক ব্যবসায়ী বাড়ি গাড়ী করে মাদকের স্বর্গরাজ্যে মুকুটহীন সম্রাট সেজে মাদক রাজ্য পরিচালনা করে যাচ্ছে। এমনই একটি মাদক সম্রাট টাঙ্গাইলের মধুপুর পৌরসভার শেওড়াতলার বাসিন্দা মৃত নাজিমুদ্দিনের ছেলে মোঃশফিকুল ইসলাম। মুলত নাজিমুদ্দিন টাঙ্গাইলের কালিহাতী উপজেলার বল্লা গ্রামের আদি বাসিন্দা। কালিহাতীর বল্লাতে বিভিন্ন মাদকদ্রব্য বিক্রি করে উর্তী বয়সের ছেলেদের বিপথগামী করে ফেলে এবং মাদকাসক্ত তরুণেরা ইফটিজিং, ছিনতাই সহ বিভিন্ন অপরাধে জড়িয়ে পড়ে যার ফলে এলাকাবাসী তাদেরকে স্বপরিবারে এলাকা থেকে বিতারিত করে। পরবর্তীতে মধুপুরকে মাদকের নিরাপদ ঘাটি হিসেবে বেছে নিয়ে সামান্য জমির উপর জুফড়ীঘর তুলে তার ছেলেদেরকে নিয়ে মাদক বিক্রি শুরু করেন। মধুপুরের থানা পুলিশ থেকে শুরু করে সর্বসাধারণের কাছে আলোচিত বনে গেছে এই মাদক সম্রাট শফিক বাবলু গং। ইয়াবা ও হিরোইন সহ বেশ কয়েকবার হাতেনাতে ডিবি পুলিশের হাতে ধরা পড়ে। বর্তমানে শফিকুল বিপুল পরিমাণ হিরোইন সহ টাঙ্গাইলের ডিবি পুলিশের হাতে ধরা পড়ে এবং তার বড় ভাই বাবলু বিপুল পরিমাণ ইয়াবাসহ ধরা পড়ে বর্তমানে রৌমারী জেলহাজতে আছে। এলাকাবাসীর অভিযোগ এই মাদক ব্যবসায়ীদের কারণে এলাকার যুবসমাজ আজ বিভিন্ন অপরাধের সাথে সম্পৃক্ত হচ্ছে। বহিরাগতদের কাছে মাদক বিক্রির সময় এলাকার কিছু যুবক বাঁধা দিলে দু'পক্ষের মধ্যে হাতাহাতি হয় এবং সেই জেরে মাদক ব্যবসায়ী শফিক মাদক বিরোধী যুবকদের নামে মধুপুর থানায় মিথ্যা মামলা করে। প্রেস ব্রিফিং এর মাধ্যমে মধুপুর পৌরসভার মেয়র জনাব মাসুদ পারভেজ, অত্র ওয়ার্ডের কাউন্সিলর ও এলাকাবাসীর সমন্বয়ে সাংবাদিকদের মাধ্যমে টাঙ্গাইল জেলা প্রশাসকের নিকট এই মাদক সম্রাটদের বিরুদ্ধে কঠিন থেকে কঠিনতর শাস্তির দাবি জানান। এসময় উপস্থিত ছিলেন প্রেস ক্লাব মধুপুর এর সভাপতি মোঃ আঃ হামিদ, সাধারণ সম্পাদক মোঃ বাবুল রানা সহ বিভিন্ন প্রিন্ট ও ইলেকট্রনিক মিডিয়ার সাংবাদিকগন।

ঝিনাইদহ মহেশপুরে ফেন্সিডিল সহ মাদক ব্যবসায়ী গ্রেফতার

ঝিনাইদহ মহেশপুরে ফেন্সিডিল সহ  মাদক ব্যবসায়ী গ্রেফতার




খোন্দকার আব্দুল্লাহ বাশার, ঝিনাইদহ জেলা প্রতিনিধি। 


মহেশপুর থানা পুলিশে  চৌখস দল মাদক বিরোধী একটি বিশেষ অভিযান পরিচালনাকালে অদ্য ইং ১১/০৬/২০২০ তারিখ বেলা ১৩.২০ ঘটিকার সময় মহেশপুর থানাধীন কুলতলা গ্রামস্থ জনৈক সিতাব আলী এর বাড়ীর সামনে জলুলী টু নোয়ানীপাড়াগামী পাঁকা রাস্তার উপর হইতে ৭৪(চুয়াত্তর) বোতল ফেন্সিডিল সহ দুই জন মাদক ব্যবসায়ী কে গ্রেফতার করে  হাতেনাতে আসামী ১। মোঃ আলামিন(২০), পিতা-মোঃ মোশারফ হোসেন, ২। আতাউর(২৮), পিতা-আঃ মোমিন  ওরফে  কালু, উভয় সাং-কানাইডাংগা (যাদবপুর), থানা-মহেশপুর, জেলা-ঝিনাইদহদ্বয়কে গ্রেফতার করে।

বঙ্গবন্ধুকন্যা শেখ হাসিনার ১২তম কারামুক্তি দিবস

বঙ্গবন্ধুকন্যা  শেখ হাসিনার ১২তম কারামুক্তি দিবস




ডেস্ক রিপোর্টঃ
---------------------- 
আওয়ামী লীগ সভাপতি ও প্রধানমন্ত্রী বঙ্গবন্ধুকন্যা শেখ হাসিনার ১২তম কারামুক্তি দিবস বৃহস্পতিবার। দীর্ঘ  প্রায় ১১ মাস কারাভোগের পর ২০০৮ সালের ১১ জুন সংসদ ভবন চত্বরে স্থাপিত বিশেষ কারাগার থেকে মুক্তি পান তিনি।  

সেনা সমর্থিত ১/১১ এর তত্ত্বাবধায়ক সরকারের সময় ২০০৭ সালের ১৬ জুলাই গ্রেফতার হন বর্তমান প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। এ সময় কারাগারের অভ্যন্তরে রাষ্ট্রনায়ক শেখ হাসিনা অসুস্থ হয়ে পড়েন। তখন বিদেশে চিকিৎসার জন্য তাঁকে মুক্তি দেয়ার দাবি ওঠে বিভিন্ন মহল থেকে। আওয়ামী লীগসহ অন্যান্য অঙ্গ ও সহযোগী সংগঠনের ক্রমাগত চাপ, আপোসহীন মনোভাব ও অনড় দাবির পরিপ্রেক্ষিতে তৎকালীন তত্ত্বাবধায়ক সরকার বঙ্গবন্ধুকন্যা শেখ হাসিনাকে মুক্তি দিতে বাধ্য হয়।

কয়রায় সরকারি পুকুর সংলগ্ন ক্ষতিগ্রস্ত রাস্তার মেরামত কাজ শুরু

কয়রায় সরকারি পুকুর সংলগ্ন ক্ষতিগ্রস্ত রাস্তার মেরামত কাজ শুরু





মোহাঃ ফরহাদ হোসেন কয়রা(খুলন) প্রতিনিধিঃ 
খুলনার কয়রা উপজেলার সদর ইউনিয়নের ৪নং কয়রা সরকারি পুকুরপাড় হতে খেজুরবাগ অভিমুখী ক্ষতিগ্রস্ত রাস্তাটি মেরামতের কাজ শুরু হয়েছে। ঘুর্নিঝড় আম্পানে উপজেলা সদর হয়ে ঝিলিয়াঘাটা হয়ে উত্তর  ও দক্ষিন বেদকাশি ইউনিয়ন দুটির লোকজনের চলাচলের প্রধান সড়কটি মানুষ ও যানবাহন চলাচলের অনুপযোগী হয়ে পড়ে। ফলে বিকল্প চলাচলের পথ হিসাবে খেজুরবাগ -৪নং কয়রা সরকারি পুকুরপাড় হয়ে  কয়রা সদর ইউনিয়নের অর্ধেক ও উত্তর বেদকাশি, দক্ষিন বেদকাশির লোকজনের চলাচল করতে হচ্ছে।  কিন্তু ৪নং কযরা সরকারি  পুকুরপাড় সংলগ্ন ৭২০ ফুট রাস্তার ইট নষ্ট হয়ে ছোট বড় গর্তের সৃষ্টি হয়ে চলাচলের চরম দুর্ভোগ পোহাতে হচ্ছে। বিশেষ করে আম্পানে ক্ষতিগ্রস্ত বেড়িবাঁধ নির্মান কাজের দায়িত্বে থাকা সেনাবাহিনী ও প্রশাসনের কর্মকর্তাদের গাড়ী নিয়ে চলাচলে  অসুবিধা সৃষ্টি হয়েছে । বিষয়টি স্থানীয় সংসদ সদস্য আলহাজ্ব আক্তারুজ্জামান বাবু এমপি কে যানানো হলে তিনি তাতক্ষনিক  সরকারি পুকুরপাড় সংলগ্ন রাস্তাটি সংস্কারের জন্য প্রয়োজনীয় অর্থ বরাদ্দ দেন বলে জানিয়েছন কয়রা সদর ইউপি চেয়ারম্যান এইচ,এম,হুমায়ুন কবির। 
গতকাল বৃহস্পতিবার সকালে ইউপি চেয়ারম্যান সংশ্লিষ্ট ওয়ার্ড মেম্বার লুৎফার রহমান কে সাথে নিয়ে ক্ষতিগ্রস্ত রাস্তাটির মেরামত কাজ আনুষ্ঠানিক ভাবে শুরু  করেন।  এ সময় সদর ইউপি চেয়ারম্যান হুমায়ুন কবির বলেন কয়রা সদর সহ পাশ্ববর্তী উত্তর ও দক্ষিন বেদকাশী ইউনিয়নের লোকজনের চলাচলের একমাত্র রাস্তাটির বেহাল দশার কথা সংসদ সদস্য আক্তারুজ্জামান বাবুকে  যানানো হলে তিনি সাথে সাথে রাস্তাটির সংস্কারের জন্য অর্থ বরাদ্দ দেন,। এলাকাবাসী সংসদ সদস্যর প্রতি কৃতজ্ঞতা প্রকাশ করেন।

বোচাগঞ্জ কৃষকের মাঝে বিনামূল্যে সবজী বিতরণ

বোচাগঞ্জ কৃষকের মাঝে বিনামূল্যে সবজী বিতরণ




 দিনাজপুর  প্রতিনিধি॥২০১৯-২০২০ অর্থ বছরের খরিপ-১/ ২০২০-২০২১ মৌসুমে পারিবারিক কৃষির আওতায় সবজী পুষ্টি বাগান স্থাপনের কৃষি প্রনোদনা কর্মসূচীর আওতায় দিনাজপুরের বোচাগঞ্জ উপজেলায় ১৯২ জন কৃষকের মাঝে বিনামূল্যে সবজী বীজ বিতরন করা হয়।
১১ জুন বৃহস্পতিবার সকালে বোচাগঞ্জ উপজেলা কৃষি সম্প্রসারণ অধিদপ্তরের সামনে কৃষকদের হাতে পালংশাক, বরবটি, লালশাক, কলমিশাক, পুইশাক, ডাটাাক ও বেগুন এর বীজ এবং কৃষকদের বিকাশ নম্বরে সার বাবদ ৪৩৫ টাকা, বেড়া বাবদ ১হাজার টাকা, পরিচর্যা বাবদ ৫শ টাকা,মোট ১হাজার ৯শত ৩৫ টাকা প্রদান করেন বোচাগঞ্জ উপজেলা নির্বাহী অফিসার ফকরল হাসান, সেতাবগঞ্জ পৌরসভার মেয়র আব্দুস সবুর, বোচাগঞ্জ উপজেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক আফছার আলী, উপজেলা কৃষি অফিসার বাসুদেব রায়।

বোচাগঞ্জে করোনাভাইরাস সংক্রমণ রোধে আওয়ামী লীগের সচেতনতা মুলক প্রচারণা

বোচাগঞ্জে করোনাভাইরাস সংক্রমণ রোধে আওয়ামী লীগের সচেতনতা মুলক প্রচারণা




 দিনাজপুর  প্রতিনিধি॥ করোনাকে ভয় নয় বরং সতর্ক থাকুন মাক্স পড়ে বাইরে বের হউন এই স্লোগান নিয়ে বোচাগঞ্জ উপজেলা আওয়ামী লীগের উদ্যেগে সেতাবগঞ্জ পৌর এলাকায় মাক্স বিতরণ করা হয়।
১১ জুন বৃহস্পতিবার সকালে বোচাগঞ্জ উপজেলা আওয়ামী লীগের উদ্যেগে সেতাবগঞ্জ পৌর এলাকার ৩ টি পয়েন্টে স্কুল রোডস্থ দলীয় কার্যালয়ের সামনে, চৌরাস্তা মোড় ও বড়গোলা কাঁচাবাজার এলাকায় সাধারণ মানুষের মাঝে করোনা সম্পর্কে সচেতনতা বাড়াতে ফ্রি মাক্স বিতরণ করে বোচাগঞ্জ উপজেলা আওয়ামী লীগ ।
মাক্স বিতরণ করেন বোচাগঞ্জ উপজেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক আফছার আলী, সহ-সভাপতি ও পৌর মেয়র আব্দুস সবুর, মো. জাফরুল্লাহ, আলহাজ্ব আব্দুল মান্নান,যুগ্ন সম্পাদক সুব্রত কুমার অধিকারী, তথ্য ও গবেষনা বিষয়ক সম্পাদক ফিরোজ্জামান কবীর, দপ্তর সম্পাদক এম বিল্লাহ জুয়েল,সহ-দপ্তর সম্পাদক আকতারুজ্জামান সজীব, যুব ও ক্রীড়া সম্পাদক বরুন চন্দ্র সরকার, আওয়ামী লীগ নেতা সাইফুর রহমান, নুরুজ্জামান সোনা প্রমুখ।

কাহারোলে লাম্পি স্কিন ভাইরাসে হাজার হাজার গরু আক্রান্ত মারা গেছে বেশ কয়েকটি

কাহারোলে লাম্পি স্কিন ভাইরাসে হাজার হাজার গরু আক্রান্ত মারা গেছে বেশ কয়েকটি




দিনাজপুর প্রতিনিধিঃ দিনাজপুরের কাহারোল উপজেলা গবাদী পশুর মাঝে লাম্পি স্কিন ডিজিজ (এলএসডি) ভাইরাস ছড়িয়ে গেছে উপজেলার প্রতিটি গ্রামে গ্রামে। ভাইরাসের কারণে প্রান্তিক কৃষক ও খামারীরা চরম দুঃস চিন্তায় পড়েছেন। গত কয়েক দিন ধরে উপজেলায় প্রায় কয়েক হাজার গরু এই ভাইরাসে আক্রান্ত হয়েছে। ভাইরাসে আক্রান্ত হয়ে মারা গেছে অনেক গরু। এই পরিস্থিতিতে প্রাণী সম্পদ কর্মকর্তা দিদারুল আহসান বলেন, আতংকিত না হয়ে সচেতনতা পরামর্শ দিচ্ছেন প্রাণী সম্পদ বিভাগ। চিকিৎসক স্বল্পতার কারণে চিকিৎসা দিতে হিমশিম খাচ্ছেন প্রাণী সম্পদ বিভাগ। কাহারোল উপজেলা প্রাণী সম্পদ অফিস সূত্রে জানা গেছে, কাহারোল উপজেলায় গরুর সংখ্যা ১ লক্ষ ১৯ হাজার ১৭৩ টি। ১-৫টি গরুর খামার রয়েছে ৪ হাজার ১৪৪টি, ৬-৯টি গরুর খামার রয়েছে ৪৫৫টি এবং ১০-২০টি গরুর খামার রয়েছে ৩৫টি। এর মধ্যে লাম্পি স্কিনে আক্রান্ত গরুর সংখ্যা প্রায় ৫০০’র অধিক। মারা গেছে গরুর সংখ্যা প্রাণী সম্পদ বিভাগে জানা নেই। জনবল কম থাকায় মাঠ পর্যায়ে তথ্য সংগ্রহ করতে পারছেন না। এছাড়াও কৃষকেরা আক্রান্ত গরু নিয়ে প্রাণী সম্পদ না আসার কারণে অনেকটা তথ্য সংগ্রহ করতে সমস্যায় পরতে হচ্ছে কৃর্তপক্ষকে। প্রাণী সম্পদ অফিস আরো জানান, লাম্পি ডিজিজ ভাইরাসটি আক্রান্ত গরুর প্রথমে ফলে গুঠিগুঠি হচ্ছে। কয়েকদিন পর গুঠিগুলো ফেটে রস পরতে থাকে। ফলে ফেটে যাওয়া স্থানে ক্ষত সৃষ্টি হয়ে গরুর শরীরে প্রচন্ড জ্বর এবং খাবার রুচি কমে যায়। লাম্পি স্কিন ডিজিজ (এলএসডি) ভাইরাস কাহারোল উপজেলার বিভিন্ন এলাকায় ছড়িয়ে পড়েছে। গতকাল উপজেলার বিভিন্ন এলাকা ঘুরে দেখা গেছে বিভিন্ন গ্রামের অনেক গরু এ রোগে আক্রান্ত হয়েছে এছাড়াও বেশ কয়েকটি গরু মারা গেছে।

করোনাভাইরাস সংক্রমণ পরিস্থিতিতে সামাজিক দুরত্ব নিশ্চিত ও মুখে মাস্ক ব্যবহার বাধ্যতামুল করণে প্রচারণা ক্যাম্পেইন

করোনাভাইরাস সংক্রমণ পরিস্থিতিতে সামাজিক দুরত্ব নিশ্চিত ও মুখে মাস্ক ব্যবহার বাধ্যতামুল করণে প্রচারণা ক্যাম্পেইন




দিনাজপুর প্রতিনিধি ॥ চলমান করোনাভাইরাস (কোভিট-১৯) সংক্রমণ পরিস্থিতিতে জেলা প্রশাসকের সম্মেলন কক্ষে স্বাস্থ্যবিধি প্রতিপালন ও সামাজিক দুরত্ব নিশ্চিত করণে কর্মকৌশল নির্ধারণ বিষয়ক আলোচনা সভা শেষে করোনাভাইরাস প্রতিরোধে জন সাধারণের মুখে মাস্ক ব্যবহার বাধ্যতামূলক করার জন্য একটি প্রচারনা ক্যাস্পেইন গঠন করেন জেলা প্রশাসক মোঃ মাহমুদুল আলম। এই প্রচারণা ক্যাম্পেইনের আওতায় ১০টি পয়েন্ট গঠন করা হয়েছে উক্ত পয়েন্ট গুলোর মধ্যে দিনাজপুর সরকারি কলেজ মোড়, পুলহাট মোড়, মহারাজা স্কুল মোড়, রামনগর মোড়, বালুয়াডাঙ্গা মোড়, গণেশ তলা মডার্ণ মোড়, ফুলবাড়ী বাস স্ট্যান্ড মোড়, লিলির মোড়, রেল বাজার এবং বড় মাঠের সিএনবি মোড়। এই পয়েন্ট গুলোতে করোনাভাইরাস প্রতিরোধে বিভিন্ন প্রচারণা কাজে জেলা প্রশাসকের নেতৃত্বে জেলা করোনাভাইরাস প্রতিরোধ কমিটি, পৌরসভার জন প্রতিনিধি, সেনাবাহিনী, পুলিশ বিভিাগ, শিক্ষক প্রতিনিধি, সমাজ সেবামূলক সামাজি সংস্থা, সেচ্ছাসেবি সংগঠন, স্কাউট ও রোভার স্কাউট,গণমাধ্যম কর্মী সেচ্ছায় সহযোগিতা করছেন। এই কার্যক্রম ১০ জুন বুধবার থেকে শুরু হয় এবং ধারাবাহিকভাবে চলতে থাকবে।

মাধবপুরে ১জন নারী মৃতসহ ৮ জনের করোনা শনাক্ত।

মাধবপুরে ১জন নারী মৃতসহ  ৮ জনের করোনা শনাক্ত।




লিটন পাঠান হবিগঞ্জ জেলা প্রতিনিধি

  হবিগঞ্জের মাধবপুর থানার এক জন।
 এএসআই সহ ৮ পুলিশ সদস্য কোভিড (১৯) আক্রান্ত হয়েছেন এদিকে, করোনার উপসর্গ নিয়ে  সিলেটর একটি  বে সরকারী হাসপাতালে মাধবপুর  থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা ওসি ইকবাল হোসেন।

চিকিৎসাধী থাকলেও  ওনার  কোভিড১৯  নেগেটিভ এসেছে। এদিকে করোনা উপসর্গ নিয়ে মারা যাওয়া  গীতা রানী  রায়, করোনা পজেটিভ এসেছে তিনি পৌর এলাকার কাটিয়ারা গ্রামের বাসিন্দা, মাধবপুর উপজেলা স্বাস্হ্য কর্মকর্তা।

 ডাঃ ইশতিয়াক মামুন জানান, গত ৩জুন মাধবপুর থানায় কর্মরত ১৭ পুলিশ সদস্য সহ ২৫ জনের নমুনা সংগ্রহ করে ঢাকার  ন্যাশনাল ইনষ্টিটিউট অব ল্যাবরেটরি তে স্হাপিত  কোভিড১৯ বিশেযায়িত ল্যাবে পাঠানো হয়। সেখান থেকে আজ।

 বৃহস্পতিবার (১১-জুন) সকালে মৃত, নারী সহ ৮ পুলিশ করোনা ভাইরাস  পজেটিভ। মাধবপুর থানার ইন্সপেক্টর তদন্ত গোলাম দস্তগীর আহমেদ জানান, করোনার উপসর্গ দেখা দেয়া ও নমুনা রিপোট সংগ্রহের পর থেকেই পুলিশ।

 সদস্যরা হোম কোরেন্টাইন মেনে চলেন। ডাঃ ইশতিয়াক মামুন  জানান  পুলিশ সদস্য দের  পজিটিভ  রিপোট আসার পর ই তাদের  প্রাতিষ্টানিক  কোয়ারেন্টাইন  নিশ্চত করার উদ্যেগ গ্রহন করা হয়েছে, তিনি আরো বলেন,

 গীতা রানী রায় মৃত্যুর ৮দিন পর আজ, বৃহস্পতিবার তার করোনা ভাইরাস পজেটিভ রিপোর্ট আসে, এই প্রথম কোভিড(১৯) আক্রান্ত হয়ে মাধবপুরে কেউ মারা গেলেন, মাধবপুরে এ পর্যন্ত ২০জন করোনায় আক্রান্ত হলেও মারা।
 গেছেন, শুধু গীতা রানী রায়, সুস্ত হয়ে উঠেছেন ১১জন।

নাগরপুরে বজ্রপাতে মাঠে ঘাস কাটতে গিয়ে ৫০ বয়সী কৃষকের মৃত্যু

নাগরপুরে বজ্রপাতে মাঠে ঘাস কাটতে গিয়ে ৫০ বয়সী কৃষকের মৃত্যু




হাসান সাদী,নাগরপুর(টাঙ্গাইল)প্রতিনিধিঃ টাঙ্গাইলের নাগরপুরে কলমাইদ গ্রামে বজ্রপাতে জয়ধর আলী(৫০) নামে এক কৃষকের মৃত্যু হয়েছে। আজ বৃহস্পতিবার (১১ জুন ২০২০ খ্রি.) সকালে বজ্রপাতের ঘটনা ঘটে।  কৃষক জয়ধর আলী (৫০) নাগরপুর  উপজেলার মামুদনগর ইউনিয়নের কলমাইদ গ্রামের মৃত আব্দুর রহিমের ছেলে। বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন জেলা পরিষদ সদস্য শেখ কামাল হোসেন।এলাকাবাসী সূত্রে জানা যায়, বৃহস্পতিবার ভোর সকালে তিনি স্ত্রী ও মেয়েকে নিয়ে বাড়ির পাশের জমিতে ঘাস কাটার জন্য যায়। কিছু সময় পর আকাশ কালো হয়ে আসে তখন কৃষকটি ঘাস মাথায় করে বাড়ি ফেরার পথেই বজ্রপাতে নিহত হন। স্থানীয় ইউপি সদস্য মো. মানু মিয়া বজ্রপাতে কৃষক জয়ধর আলীর মৃত্যু হওয়ার বিষয়টি নিশ্চিত করেন।

ঝিনাইদহে করোনা প্রতিরোধে কঠোর অবস্থানে পুলিশ

ঝিনাইদহে করোনা প্রতিরোধে কঠোর অবস্থানে পুলিশ




খোন্দকার আব্দুল্লাহ বাশার, ঝিনাইদহ জেলা প্রতিনিধি। 


করোনা ভাইরাস  প্রতিরোধ কমিটির সিদ্ধান্ত বাস্তবায়নে কঠোর অবস্থানে পুলিশ ১১ জুন সকালে 

ঝিনাইদহ পুলিশ সুপার মোঃ হাসানুজ্জামান পিপিএম করোনা ভাইরাস কে- ভি ১৯ প্রতিরোধ কমিটির সিদ্ধান্ত বাস্তবায়নে মাঠে নেমেছেন । পুলিশ সকাল শহরের মোড়ে মোড়ে ব্যাপক তৎপর রয়েছে । শক্ত অবস্থান নিয়েছে সড়ক মহাসড়কে চাঁদাবাজি বন্ধে। ইজিবাইকে দু'জনের বেশি যাত্রী নেওয়া যাবে না। মোটরসাইকেলে একজনের বেশি থাকবে না, হেলমেট এবং কাগজপত্র থাকতে হবে। সকলকে অবশ্যই মাস্ক ব্যবহার করতে হবে। দোকান-পাট বেলা 2 টার মধ্যে বন্ধ করতে হবে । চায়ের দোকানে কোন আড্ডা দেওয়া যাবে না,  চায়ের দোকানের সামনে বেঞ্চ রাখা যাবে না। শুধুমাত্র ওষুধের দোকান সার্বক্ষণিক খোলা রাখা যাবে ।
এ আদেশ অমান্যকারীকে জেল জরিমানার সম্মুখীন হতে হবে।

মোংলায় ঘূর্ণিঝড় বুলবুলে ক্ষতিগ্রস্থ পরিবারের মাঝে কারিতাসের আর্থিক সহায়তা প্রদাণ

মোংলায় ঘূর্ণিঝড় বুলবুলে ক্ষতিগ্রস্থ  পরিবারের মাঝে কারিতাসের  আর্থিক সহায়তা প্রদাণ




 
মোঃএরশাদ হোসেন রনি, মোংলা    
মোংলার চাঁদপাই ইউনিয়নে ঘূর্ণিঝড় বুলবুলে ক্ষতিগ্রস্থ ৫৫ পরিবারের মাঝে ১১ জুন বৃহস্পতিবার দুপুরে কারিতাস খুলনা অঞ্চলের আয়োজনে বুলবুল রিকভারি প্রকল্পের আওতায় ইউনিয়ন পরিষদ মিলনায়তনে নগদ অর্থ প্রদান করা হয়।

বৃহস্পতিবার দুপুর ১টায় শারিরীক দূরত্ব বজায় রেখে এবং স্বাস্থ্যবিধি মেনে নগদ অর্থ প্রদান অনুষ্ঠানে সভাপতিত্ব করেন চাঁদপাই ইউপি চেয়ারম্যান মোল্লাঃ মোঃ তারিকুল ইসলাম। অর্থ প্রদান অনুষ্ঠানে বিশেষ অতিথি ছিলেন কারিতাস মোংলার কর্মসুচি কর্মকর্তা মামুন সিরাজুম মুনির চৌধুরী ও ইআরপিসিবি প্রকল্পের মাঠ কর্মকর্তা স্নিগ্ধা বাড়ই। এছাড়া উপস্থিত ছিলেন ইউপি সদস্য মোড়ল মতিউর রহমান, লিয়াকত আলী হাওলাদার, হারুনুর রশিদ, দূর্জয় হালদার প্রমূখ। অর্থ প্রদান অনুষ্ঠানে বক্তারা বলেন প্রথম প্রথম পর্যায়ে ঘূর্ণিঝড় বুলবুলে ক্ষতিগ্রস্থ ৫৫ পরিবারের প্রত্যেককে ১০ হাজার টাকা প্রদান করা হচ্ছে। দ্বিতীয় পর্যায়ে ক্ষতিগ্রস্থ প্রত্যেক পরিবারকে আরো ১০ টাকা করে প্রদান করা হবে। এছাড়া ঘূর্ণিঝড় আম্পানে ক্ষতিগ্রস্থদেরও কারিতাসের পক্ষ থেকে আর্থিক সহায়তা দেয়া হবে বলে জানা যায়।

জেলা প্রশাসকের কাছে অত্যাধুনিক থার্মোমিটার ও অক্সিমিটার প্রদান করলেন জেলা চেম্বার অব কমার্স এবং চাউল কল মালিক গ্রুপ

জেলা প্রশাসকের কাছে অত্যাধুনিক থার্মোমিটার ও অক্সিমিটার প্রদান করলেন জেলা চেম্বার অব কমার্স এবং চাউল কল মালিক গ্রুপ





মামুনুর রশিদ,দিনাজপুর ॥ চলমান করোনাভাইরাস (কোভিট-১৯) সংক্রমণ পরিস্থিতিতে জেলা প্রশাসকের সম্মেলন কক্ষে স্বাস্থ্যবিধি প্রতিপালন ও সামাজিক দুরত্ব নিশ্চিত করণে কর্মকৌশল নির্ধারণ বিষয়ক আলোচনা সভা শেষে করোনাভাইরাস প্রতিরোধে শরীরের তাপমাত্রা নির্নয় করার ১০টি অত্যাধুনিক থার্মোমিটার জেলা প্রশাসক মোঃ মাহমুদুল আলম-এর মাধ্যমে সিভিল সার্জন ডাঃ মোঃ আব্দুল কুদ্দুছ এর নিকট হস্তান্তর করেন দিনাজপুর চেম্বার অব কমার্স এন্ড ইন্ডাস্ট্রি’র এর সভাপতি মোঃ সুজা-উর রব চৌধুরী। মানব দেহের অক্সিজেন মাত্রা নির্নয় করার ১৩টি অত্যাধুনিক যন্ত্র “অক্সিমিটার” হস্তান্তর করেন দিনাজপুর জেলা চাউল কল মালিক গ্রুপ এর সভাপতি মোঃ মোছাদ্দেক হুসেন। এসময় উপস্থিত ছিলেন সংগঠনের সাধারণ সম্পাদক মোসাদ্দেক হোসেন চৌধুরী পাপ্পু ও সাংগঠনিক সম্পাদক গোলাম মাজেদুর রহমান ডাবলু প্রমূখ।

দেশের উন্নয়নে অবদান রাখতে কাজ করছে দিনাজপুরের এস এস ফুড প্রাঃ লিঃ

দেশের উন্নয়নে অবদান রাখতে কাজ করছে দিনাজপুরের এস এস ফুড প্রাঃ লিঃ





দিনাজপুর প্রতিনিধি ॥ কর্মহীন যুবকদের কর্মসংস্থান সৃষ্টিতে কাজ করবে দিনাজপুরের এস এস ফুড এন্ড বেভারেজ কোম্পানী প্রাঃ লিঃ। ইতিমধ্যে এ প্রতিষ্ঠানে অনেকের কাজের সুযোগ সৃষ্টি হয়েছে আগামীতেও বেকারত্ব দূরীকরণে এই প্রতিষ্ঠান অত্র অঞ্চলের কর্মহীন মানুষের আত্মসামাজিক উন্নয়নে ভূমিকা রাখার পাশাপাশি এই অঞ্চলের মানুষের কর্মসংস্থানে সুযোগ সৃষ্টিতে এই প্রতিষ্ঠান সকলের সহযোগিতা নিয়ে কাজ করে যাবে।
 দিনাজপুর এস এস ফুড এন্ড বেভারেজ কোম্পানী প্রাঃ লিঃ এর চেয়ারম্যানের কার্যালয় উদ্বোধন করেন,উক্ত উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে স্বাগত বক্তব্যে এস এস ফুড এন্ড বেভারেজ কোম্পানী প্রাঃ লিঃ এর ভাইস চেয়ারম্যান মো. রবিউল ইসলাম সোহাগ এ কথা বলেন। তিনি বলেন, সামাজিক দায়বদ্ধতা ছাড়া ব্যবসায় স্থায়ীত্ব সম্ভব নয়। আমরা আমাদের কোম্পানীকে শুধু ব্যবসার মতো করে ভাবছি না, এই কোম্পানীর মাধ্যমে সামাজিক পরিবর্তনের যে সুযোগ রয়েছে তা আমরা কাজে লাগাতে চাই। প্রযুক্তির সন্নিবেশ ঘটিয়ে এই কোম্পানীতে কর্মরত সহকর্মীদের জীবন মান উন্নয়নও আমাদের লক্ষ্য। সামগ্রিকভাবে দেশের উন্নয়নে অবদান রাখাটাই এস এস ফুড এন্ড বেভারেজ কোম্পানী প্রাঃ লিঃ এর মুখ্য উদ্দেশ্য। দেশের উন্নয়নে অবদান রাখতে ইতোমধ্যে কাজ করছে এস এস ফুড এন্ড বেভারেজ কোম্পানী প্রাঃ লিঃ।
অনুষ্ঠানের শুরুতেই উদ্বোধনী ফলক উন্মোচন, বেলুন ও পায়রা উড়িয়ে এবং ফিতা কেটে চেয়ারম্যানের কার্যালয়ের শুভ উদ্বোধন করেন এস এস ফুড এন্ড বেভারেজ কোম্পানী প্রাঃ লিঃ-এর পরিচালক আলহাজ্ব সাবরুন নেছা। এ সময় উপস্থিত ছিলেন এস এস ফুড এন্ড বেভারেজ কোম্পানী প্রাঃ লিঃ-এর ব্যবস্থাপনা পরিচালক মোঃ ফরিদুল ইসলাম, উপ-ব্যবস্থাপনা পরিচালক মো. সাহেদ জামান, পরিচালক (প্রশাসন) মোছাঃ সাবিনা ইয়াসমিন, পরিচালক মোছাঃ সানজিদা পারভীন লিজাসহ প্রতিষ্ঠানের অন্যান্য কর্মকর্তা-কর্মচারীবৃন্দ।

নাগরপুরে করোনা প্রতিরোধে কলেজ ছাত্র ফয়জুলের অনলাইনে ব্যাপক প্রচারণা

নাগরপুরে করোনা প্রতিরোধে কলেজ ছাত্র ফয়জুলের অনলাইনে ব্যাপক প্রচারণা




 টাংগাইল জেলাপ্রতিনিধি:বাংলাদেশে প্রথম মহামারী করোনা ভাইরাস সনাক্ত হওয়ার পর থেকে দুয়াজানী কলেজ পাড়া ছাত্র কল্যান পরিষদের তথ্য ও প্রযুক্তি বিষয়ক সম্পাদক, কলেজ ছাত্র মো.ফয়জুল রহমান নিজের ফেজবুক আইডিসহ,প্রিয় নাগরপুর বাসী,নাগরপুর করোনা সর্তকতা,করোনা আপডেট এবং দুয়াজানী কলেজ পাড়া ছাত্র কল্যান পরিষদের অনলাইন পেজ সহ বিভিন্ন অনলাইন পেজে করোনা বিষয়ক যেকোন তথ্য নিজ উদ্যোগে শেয়ার, পিকচার,পোষ্ট,লাইক দিয়ে নাগরপুর বাসী সহ দেশবাসীকে সর্তকতা ও সচেতনতা করার জন্য ব্যাপক প্রচার প্রচারণা চালিয়ে আসছে, ফলে নাগরপুর বাসী সহ বিভিন্ন মহল থেকে মো.ফয়জুল রহমান কে ধন্যবাদ ও শুভেচ্ছা জানিয়েছেন।  করোনা প্রচার বিষয়ে দুয়াজানী কলেজ পাড়া ছাত্র কল্যান পরিষদের প্রতিষ্ঠাতা সভাপতি ও বিশিষ্ট চিকিৎসক ডা.এম.এ.মান্নান বলেন-দিন যাচ্ছে দেশে করোনা ভাইরাসের পরিস্থিতি ভয়াবহ হয়ে উঠেছে। প্রতিদিন অসংখ্য লোক করোনা ভাইরাসে আক্রান্ত হচ্ছেন এবং প্রতিদিন করোনা অক্রান্ত হয়ে অনেক মানুষের প্রাণহানি হচ্ছে।  সাধারণ মানুষের মাঝে করোনা ভাইরাস সম্পর্কে সচেতনতার অভাব লক্ষ করা যাচ্ছে ঠিক তখনই কলেজ ছাত্র মো.ফয়জুল রহমান নিজের উদ্যোগে একজন কলম সৈনিক হিসাবে নাগরপুরসহ দেশের মানুষকে করোনা থেকে সুরক্ষার জন্য ফেজবুক তথা সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম অনলাইনে করোনা সর্তকতা ও সচেতনতামৃলক বাক্য,ছবি দিয়ে প্রচারনা চালিয়ে আসছে। আমি আমার পক্ষ থেকে ফয়জুল কে জানাই আন্তরিক ধন্যবাদ এবং ফয়জুল কে করোনা পরিস্হিতি স্বাভাবিক না হওয়া পর্যন্ত একজন করোনা যোদ্ধা হিসাবে দেশের কল্যানে পজিটিভ তথ্য প্রচারনা   অব্যাহত রাখার জন্য অনুরোধ করছি।                                          করোনা ভাইরাস সম্পর্কে জানতে চাইলে মো.ফয়জুল রহমান বলেন-
দেশে করোনা ভাইরাসের পরিস্থিতি ভয়াবহ  রুপ নিচ্ছে।  করোনা প্রতিরোধের জন্য সরকারের পাশাপাশি আমি আমার পক্ষ থেকে স্বেচ্ছায় করোনার প্রথম থেকেই ক্ষুদ্র ক্ষুদ্র কাজের মাধ্যমে সকল শ্রেনীর মানুষ কে সচেতন  করে আসছি। আমার সাথে দিন রাত কাজ করছে  আমার প্রিয় ছাত্রকল্যাণ ও সমাজকল্যাণ এবং অরাজনৈতিক সংগঠন দুয়াজানি কলেজ পাড়া ছাত্রকল্যাণ পরিষদের সম্মানিত সভাপতি ও মহাসচিব সহ সকলস্তরের নেত্ববৃন্দ। আমি চাই আমাদের পাশাপাশি সকল রাজনৈতিক ও অরাজনৈতিক  সংগঠনগগুলো অসহায় মানুষের পাশে এগিয়ে অাসুক আর আমি ক্ষুদ্র ক্ষুদ্র কাজ করে ফেইসবুকে পোস্ট করি কারন আমার দেখাদেখি সকল যুবক,ছাত্ররা উৎসাহ হয়ে সকল শ্রেনী পেশার মানুষদের পাশে দাড়াতে পারে। কাউকে একটু সাহায্য করলে আমার ভাল লাগে। শুধু মাত্র রাজনিতি করলেই মানুষের পাশে দাড়ান যায় এটা ভুল ধারনা। মানুষ মানুষের জন্য, জীবন জীবনের জন্য। কারন, আমি সকলের ভালবাসা ও দোয়া  নিয়ে বড় হতে চাই। সবাই আমার জন্য দোয়া করবেন, আল্লাহ হাফেজ, বাংলাদেশ সহ সারাবিশ্ব করোনা মুক্ত হোক।

করোনার আপডেট

করোনার আপডেট
 





নিউজ ডেস্কঃ  গত ২৪ ঘন্টায় নমুনা পরিক্ষা ১৫৭৭৮
 নতুন সনাক্ত - ৩১৭৭
নতুন মৃত্যু -৩৭
নতুন সুস্থ - ৮৭৮


উৎসঃ স্বাস্থ্য অধিদপ্তর   

মাগুরার শ্রীপুরে আম পাড়তে গিয়ে বৈদ্যুতিক শর্ট সার্কিটে যুবক নিহত

মাগুরার শ্রীপুরে আম পাড়তে গিয়ে বৈদ্যুতিক শর্ট সার্কিটে যুবক নিহত




মো:রাসেল হোসেন,শ্রীপুর (মাগুরা)প্রতিনিধি।।

মাগুরার শ্রীপুর উপজেলা খামারপাড়া গ্রামে চিকিৎসক মোহন মোল্যার গাছে আম পাড়তে গিয়ে বৈদ্যুতিক শর্ট সার্কিটে ইসমাইল মোল্যা (২৫) নিহত হয়েছে। নিহত ইসমাইল মোল্যা শ্রীপুর উপজেলার বারইপাড়া গ্রামের মৃত রুস্তম মোল্যার ছেলে। পেশায় একজন রাজমিস্ত্রী।

স্থানীয় সূত্রে জানা যায়, আজ সকাল সাড়ে ৯ টার দিকে সে গাছে আম পাড়তে ওঠে। হাতে থাকা কাঁচা বাঁশের কাটা অসাবধানবশত উচ্চ ক্ষমতা সম্পন্ন বৈদ্যুতিক তাঁরের উপর পড়ে শর্ট সার্কিট হয়। পরে শ্রীপুর ফায়ার সার্ভিস তাকে উদ্ধার করে শ্রীপুর উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে নিয়ে যায়।

এ বিষয়ে শ্রীপুর ফায়ার সার্ভিসের স্টেশন অফিসার ভারপ্রাপ্ত আক্কাস আলী জানান, আমরা খবর পেয়ে দ্রুত ঘটনাস্থলে পৌঁছে লাশটি রশি বেঁধে গাছ থেকে নামাতে সক্ষম হই। পরে আমাদের ফায়ার সার্ভিসের গাড়িতে করে শ্রীপুর উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে নিয়ে পৌঁছে দিয়ে আসি।

শ্রীপুর উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সের কর্মকর্তা রঈসউজ্জামান হাসপাতালে নিয়ে আসার আগেই তার মৃত্যু হয়েছে বলে নিশ্চিত করেন।

এ বিষয়ে চিকিৎসক মোহন মোল্যা জানান, ওই ছেলে আমার পরিবারের সাথে খুব আন্তরিক। ওদের সাথে ও আমাদের দীর্ঘদিনের পারিবারিক সম্পর্ক। আমার কাজে সাহায্য করার কেউ না থাকায় প্রতিবছর সে আমার বাড়িতে এসে আম পেড়ে দেয়। আজ কখন যে আম পাড়তে উঠেছে আমি জানিনা। আমি আমার ব্যবসা প্রতিষ্ঠানে যাওয়ার প্রস্তুতি নিচ্ছিলাম। এমন সময় এমন ঘটনা শুনে বাহিরে এসে দেখি ছেলেটি বৈদ্যুতিক শর্ট সার্কিটে গাছে ঝুলে আছে। আমি এবং আমার পরিবারের সবাই ওর মৃত্যতে খুবই কষ্ট পেয়েছি। 

এ বিষয়ে শ্রীপুর থানা এসআই রাসেল জানান, আমি ঘটনাস্থলে এসে ছেলেটিকে আম গাছে ঝুলে থাকতে দেখি। পরে শ্রীপুর ফায়ার সার্ভিসের সহায়তায় তাকে নিচে নামানো হয়। আসলে ঘটনাটি অনাকাঙ্খিত।

এ বিষয়ে শ্রীপুর থানা ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা আলী আহমেদ মাসুদ জানান, এ বিষয়ে একটি অপমৃত্যু মামলা প্রক্রিয়াধীন রয়েছে। লাশ ময়না তদন্তের জন্য পাঠানো হয়েছে। ময়নাতদন্তের রিপোর্ট ও নিহতের পরিবারের অভিযোগের উপর ভিত্তি করে ব্যবস্থা গ্রহন করা হবে।

ফ্রিজের বহুমুখী ব্যবহার মাদক!

ফ্রিজের বহুমুখী ব্যবহার মাদক!



 চাঁপাইনবাবগঞ্জ প্রতিনিধি :
আজ সকাল ০৭ঃ৩০ ঘটিকার সময় আসামী মাসুদ রানা (৪৫) পিতা-মতিউর রহমান সাং-দাইপুকুরিয়া উপরপাড়া থানা-শিবগঞ্জ জেলা-চাঁপাইনবাবগঞ্জ ৮০ (আশি) বোতল ফেন্সিডিলসহ নিজ বাড়ি হতে আটক করেন এস আই মো:জাহিদ ইসলাম।

কেউ মনে রাখেনি জবি শিক্ষার্থী রুবিনাকে

কেউ মনে রাখেনি জবি শিক্ষার্থী রুবিনাকে






জবি প্রতিনিধিঃ রেল দূর্ঘটনায় দুই পা হারানো জগন্নাথ বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষার্থী রুবিনাকে কেউ মনে রাখেনি। বর্তমান এই করোনার সংকটময় সময়ে সবাই ভুলে গেছে জগন্নাথ বিশ্ববিদ্যালয়ের সমাজকর্ম বিভাগের শিক্ষার্থী রুবিনাকে। 

২০১৮ সালের ২৮ জানুয়ারি রেল দূর্ঘনটায় দু পা হারান রুবিনা। রাজধানীর কমলাপুর রেলস্টেশনে প্ল্যাটফর্ম বদলের সময় ট্রেনে কাটা পড়ে দুই পা হারিয়েছিলেন জগন্নাথ বিশ্ববিদ্যালয়ের ছাত্রী রুবিনা। হাসপাতালে ভর্তির পর তাকে বাঁচানোর জন্য দু পা কেটে বাদ দিতে হয়।


বাবাকে হারিয়েছেন শৈশবে, বড় বোনটি মানসিক প্রতিবন্ধী। লেখাপড়া শেষ করে পরিবারকে টেনে তোলার চেষ্টা করছিলেন। এরই মধ্যে এ দুর্ঘটনার স্বীকার হন তিনি। সে সময়ে অনেকে তার পাশে থাকার আশ্বাস প্রদান করলেও বর্তমানে তার পাশে কেউ নেই। এমনকি এই করোনার সংকটের সময়ও তার খোঁজ রাখেনি কেউ।



কিভাবে সংসার চলছে জানতে চাইলে রুবিনা বলেন, বর্তমানে খুবই সংকটময় অবস্থায় দিন যাপন করতে হচ্ছে তাকে, দূর্ঘনটার পর শুরুর দিকে সবাই খোঁজ খবর রাখলেও এখন আর কেউ মনে রাখেনি। একটা ছোট চাকরির ব্যবস্থা করা হয়েছিল রেল মন্ত্রনালয় থেকে কিন্তু সেই অল্প টাকা দিয়ে সংসার চলে না।


তিনি আরো বলেন, গ্রামে আমাদের একটা জমি রয়েছে তা বন্ধক রেখে যে সামান্য টাকা আসে তা দিয়ে বর্তমানে আমাদের সংসার খরচ পরিচালনা করতে হচ্ছে। দূর্ঘটনার পর অনেকেই পাশে থাকার আশ্বাস প্রদান করলেও কিছুদিন পর তাদের আর সন্ধান মেলে নি। করোনা সংকটের মধ্যেও সরকারি বা বিশ্ববিদ্যালয় থেকে কোনো ধরণের সাহায্য পাইনি।


এবিষয়ে সমাজকর্ম বিভাগের তৎকালীন বিভাগীয় প্রধান অধ্যাপক ড. মোঃ আনোয়ার হোসেন বলেন, আমরা সেসময় তাকে সার্বিক সহয়তা করেছি। আর বিশ্ববিদ্যালয় চাকুরির জন্য আমরা প্রশাসনের সাথে যোগাযোগ করেছিলাম, কিন্তু তখন প্রশাসন জানিয়েছিলো কোনো পোস্ট খালি নেই। তৎকালীন রেলমন্ত্রীও চাকরির আশ্বাস দিয়েছিলেন সেসময়।


করোনাকালীন সময়ে রুবিনার খোঁজ রেখেছেন কি জানতে চাইলে তিনি বলেন, ব্যক্তিগত ভাবে তো কারো খোঁজ নেওয়া হয়নি। তবে আমরা শিক্ষার্থীদের বলেছিলাম কারও প্রয়োজন হলে যোগাযোগ করতে৷ যারা যোগাযোগ করেছে তাদের ডিপার্টমেন্ট থেকে সহায়তা করেছি।

গান্ধাইল রতন কান্দি আলীআহম্মেদ উচ্চবিদ্যালয়ের উদ্যোগে মোহাম্মাদ নাসিমের রোগ মুক্তি কামনায় দোয়া মাফিল

গান্ধাইল রতন কান্দি আলীআহম্মেদ উচ্চবিদ্যালয়ের উদ্যোগে মোহাম্মাদ নাসিমের রোগ মুক্তি কামনায় দোয়া মাফিল



মাসুদ রানা সিরাজগঞ্জ জেলা প্রতিনিধঃ
বাংলাদেশ আওয়ামী লীগের সভাপতিমন্ডলীর সদস্য ১৪ দলের মুখপাত্র মোহাম্মদ নাসিমের সংকটাপন্ন অবস্থার উন্নতীত কামনা করে গান্ধাইল রতন কান্দি আলী আহম্মেদ উচ্চবিদ্যালয়ের হলরুমে বিশেষ দোয়া কামনা করা হয়েছে। বৃহস্পতিবার সকাল দশ টায়  স্কুল হলরুমে মহান রাব্বুল আলামিনের নিকট তার রোগমুক্তির জন্য দোয়া করেন স্কুলের সকল ষ্টাপও ম্যানেজিং কমেটি এবং ছাএ ছাএী বৃন্ধ। অএ স্কুলের প্রধান শিক্ষ মোঃলুৎফর রহমানের  সভাপতিত্বে   ,এ সময় উপস্থিত ম্যানেজিং কমেটির সভাপতি আলহাজ তোজাম্মেল হক,ভারপ্রাপ্ত প্রধান শিক্ষমোছাঃশাহারিনা বুলবুল নাহার,মোঃশহিদুল ইসলাম,মোঃআঃ মান্নান,সাধন কুমার রায়,আবুবকর সিদ্দিকী,মোছাঃআয়সা খাতুন,মোঃ হামিদুর রহমান,রেজাউল করিম,মাসুদ রানা,আনিছুর রহমান,মোছাঃ আয়সা সিদ্দিকা(২),মোঃশাহআলম,মৃন্ময় কুমার চক্রবর্তী,মশিউর রহমান,বেল্লাল হোসেন,মোঃআলী হোসেন,মোছাঃতুষ্ট খাতুন,বাদশা আলম, আঃ হালিম প্রমুখ   । বাংলাদেশ বিশে শায়িত হাসপাতালে মস্তিষ্কে অস্ত্রোপচারের পর লাইফ সাপোর্টে থাকা নাসিমের দ্বিতীয় দফা করোনাভাইরাস পরীক্ষায় ফল ‘নেগেটিভ’ এসেছে। তার অবস্থা এখনও অপরিবর্তিত রয়েছে।

মধুপুরে মাদক ব্যবসায়ীদের হাতে আহত জগন্নাথ বিশ্ববিদ্যালয়ের ছাত্র আলীম

মধুপুরে মাদক ব্যবসায়ীদের হাতে আহত জগন্নাথ  বিশ্ববিদ্যালয়ের ছাত্র আলীম




মধুপুর টাঙ্গাইল প্রতিনিধিঃ

টাঙ্গাইলের মধুপুরে মাদক ব্যাবসায়ীদের হাতে নির্মম ভাবে আহত হয়েছেন ঢাকা জ্বগনাথ বিশ্ববিদ্যালয়ের অনার্স চতুর্থ বর্ষের উদ্ভিদ বিজ্ঞানের ছাত্র মো: আব্দুল আলীম। বুধবার(১০জুন) সন্ধায় উপজেলার অরণখোলা এলাকার বটতলা মোড়ে এঘটনা ঘটে। জানা যায় আলীম তার নিজ বাড়ী কালার বাজার হতে অটোরিক্সা (অটো) যোগে মধুপুর আসার পথে উক্ত স্হানে এলে কালার বাজার এলাকার বাসিন্দা  মাদকব্যাবসায়ী জিল্লু পিতা কালাম, নয়ন পিতা নুরুল ইসলাম, মিলন সহ আরো কয়েকজন মিলে অটোরিক্সা (অটো) থেকে নামিয়ে তাকে মারপিট করে জখম করে। পরে তাকে এলাকার লোকজন উদ্ধার করে চিকিৎসার জন্য মধুপুর উপজেলা স্বাস্হ কমপ্লেক্সে ভর্তি করেন। আলীম জানান বিশ্ববিদ্যালয় বন্ধ থাকার কারনে বাড়ীতে আসি। উক্ত মাদক ব্যাবসায়ীরা এলাকায় অবাদে মাদক সেবন ও বিক্রি করায় আমি তাদেরকে বাধা নিষেধ করায় তারা ক্ষিপ্ত হয়ে আমাকে এবং আমার পরিবারের লোকজনকেও এর আগেও মারপিট করেছিল। এ রিপোর্ট লেখা পর্যন্ত মামলার প্রস্তুতি চলছে।

মাধবপুরে বেপরোয়া হয়ে উঠেছে ফল ব্যবসায়ীরা অবাধে বিক্রি হচ্ছে ফরমালিন মিশ্রিত ফল

মাধবপুরে বেপরোয়া হয়ে উঠেছে ফল ব্যবসায়ীরা অবাধে বিক্রি হচ্ছে ফরমালিন মিশ্রিত ফল


 
লিটন পাঠান হবিগঞ্জ জেলা প্রতিনিধিঃ
হবিগঞ্জের মাধবপুরে পৌর বাজারসহ বিভিন্ন এলাকা গুলোতে আবারও বিষাক্ত রাসায়নিক দ্রব্য মেশানো রকমারি মৌসুমী ফল বিক্রি হচ্ছে যত্রতত্র, বিষ মেশানো কাঁঠাল আম আনারস কলা, লিচু মাল্ট্রা আঙ্গুর আপেল, পাকিস্তানি তরমুজ লট্কন জাম সহ বেপরোয়া ভাবে নানা ধরনের ফল প্রকাশ্যে মাধবপুর পৌর-বাজার ও রাস্তাঘাটে পসরা,

 সাজিয়ে এক শ্রেণীর অসাধু মৌসুমী ফল, ব্যবসায়ীরা বিক্রি করছে অবাধে। আর বিষাক্ত রাসায়নিক দ্রব্যে দ্রুত পাকানো এসব ফল খেয়ে প্রতিনিয়ত মানুষ লিভার কিডনী চর্মরোগ ক্যান্সার সহ নানা রোগ বালাইয়ে আক্রান্ত হচ্ছে প্রতিনিয়ত। অথচ মুনাফাখোর অসাধু মৌসুমী ব্যবসায়ীরা নির্বিচারে ফরমালিন সহ বিষাক্ত রাসায়নিক দ্রব্য মিশিয়ে,

 এসব মৌসুমী ফল প্রকাশ্যে বাজারে, বিক্রি করায় জেলা প্রশাসক এর নিদের্শে মাধবপুর উপজেলা প্রশাসন থেকে এসব প্রতিরোধে কয়েকবার ফরমালিন বিরোধী অভিযান পরিচালনা করা হলেও পুনরায় তারা বেপরোয়া হয়ে উঠেছে। জানা গেছে, জাতীয় ফল কাঁঠাল পাকাতে এখন আর কেউ প্রকৃতির উপর নির্ভর করছে না। অন্যদিকে মৌসুম শুরু,

 এক শ্রেণীর অসাধু ফল, ব্যবসায়ীরা রাসায়নিক দ্রব্য মিশিয়ে দ্রুত ফল পাকিয়ে বাজারে বিক্রি করছে। মাধবপুর উপজেলা শহর, স্থানীয় বাসষ্ট্যান্ডে বৃহস্পতিবার (১১-জুন) গিয়ে দেখা যায়, উপজেলার উৎপাদিত এবং আমদানী করা প্রচুর মৌসুমী ফলের পসরা সাজিয়ে বসেছেন ফল বিক্রেতারা। সেই সঙ্গে বেচা কিনাও চলছে পুরোদমে,

 মাধবপুরে ভেজাল প্রতিরোধে একজন, স্যানিটারী কর্মকর্তা থাকলেও ভেজাল প্রতিরোধে তিনি সর্বদা উদাসিন। ক্রেতাদের অভিযোগ তিনি ভেজাল প্রতিরোধে কোনো প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা নেইনা। ফল বিক্রেতা শাহ আলম সহ একাধিক ব্যবসায়ীরা দাবি করে বলেন, এসব ফল মূলে স্থানীয় ভাবে কোনো রাসায়নিক দ্রব্য ব্যবহার করা হয় না।

 আমরা স্থানীয় আড়ৎদার থেকে ফল, ক্রয় করে থাকি। তবে যেখান থেকে ফল আনা হয় ওই এলাকার ফল ব্যবসায়ীরা ফলে রাসায়নিক দ্রব্য মিশিয়ে থাকে। তারা বলেন, এসব ফল বিক্রি করতে প্রায়ই তারা ক্রেতাদের নানা প্রশ্নের সম্মুখিন হতে হয়। তবে সাধারণ ক্রেতারা ফল বিষাক্ত কি না এ ধরনের কোনো প্রশ্ন করেন না। স্থানীয় আড়ৎদাররা বলেন,

 মৌসুমী ফল গুলো যে এলাকায় বেশি ফলন হয় তারা মূলত সেসব অঞ্চল থেকে পাইকারী হারে ফল ক্রয় করে থাকেন। মধুপুর ও টাঙ্গাইল এলাকার বেপারিদের কাছ থেকে আনারস এবং রাজশাহী ও চাপাইনবাবগঞ্জ সহ আশপাশ এলাকা থেকে আম কিনে থাকেন তারা। এসব আড়ৎদারদের দাবি তারা স্থানীয় আড়তে কোনো ফলে,

 রাসায়নিক দ্রব্য মেশায় না। অনেক সময় বাগান মালিক ও বেপারিরা যাতে ফল পচে না যায় সেজন্য ফলের মধ্যে বিভিন্ন রাসায়নিক দ্রব্য ব্যবহার করে থাকেন। বাজারে ফল কিনতে আসা, মাধবপুর প্রেসক্লাবের বর্তমান সাধারণ সম্পাদক সাব্বির হাসান, ও মনতলা শাহজালাল সরকারি কাজের প্রভাসক আকতার হুসাইন, বলেন, সব সময় শুনে আসছি,

 ফলে বিষাক্ত দ্রব্য মিশিয়ে ফল বিক্রি, করা হয়। এরপরও বাধ্য হয়ে কিছু ফল কিনতে হয়। ডিএসবির এসআই সাইকুল ইসলাম সুজন বলেন, বিষাক্ত রাসায়নিক দ্রব্য প্রয়োগে পাকানো ফলমূল কোনো অবস্থায় খাওয়া সঠিক নয়। কারণ এসব ফল খেলে নানা জটিল রোগ ব্যাধি হতে পারে। এমনকি ক্যান্সার হওয়ার ঝুঁকিও রয়েছে। তাই বিষ মেশানো এসব ফল,

মূল বাজারজাত এখনই বন্ধ করা উচিত। উপজেলা প্রশাসনের এক কর্মকর্তা জানান, ফরমালিন মানব দেহের জন্য খুবই ক্ষতিকর। ফরমালিন যুক্ত দ্রব্যাদি সবারই পরিত্যাগ করা উচিত। এলাকার সচেতন মহল ভ্রাম্যমান আদালতের মাধ্যমে ব্যবস্থা নেওয়ার জন্য জোর দাবি জানান।

মানিকগঞ্জ জেলা কৃষক দলের স্মারকলিপি পেশ

মানিকগঞ্জ জেলা কৃষক দলের স্মারকলিপি পেশ



এস কে সুমন, মানিকগঞ্জ প্রতিনিধি 

জাতীয়তাবাদী কৃষক দলের অাহবায়ক শামসুজ্জামান দুদু ও সদস্য সচিব কৃষিবিদ হাসান জাফির তুহিনের নির্দেশনায় 

কেন্দ্রীয় কর্মসূচীর অংশ হিসাবে মানিকগঞ্জ জেলা কৃষক দলের উদ্যোগে সরাসরি প্রকৃত কৃষকের নিকট হতে ধান ক্রয় করার দাবীতে গতকাল ০৯/০৬/২০২০ তারিখ বিকালে জেলা প্রশাসক বরাবর স্মারকলিপি প্রদান করা হয়।

এসময় উপস্হিত ছিলেন মানিকগঞ্জ জেলা কৃষক দলের আহবায়ক মোঃজামিল উদ্দিন মনি ও সদস্য সচিব এ্যাডঃমুস্তাফিজুর বিশ্বাস মিলন সহ অন্যান্ন নেতৃবৃন্দ।

করোনায় চরম সংকটে শিক্ষাব্যবস্থা, দুশ্চিন্তায় বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষার্থীরা

করোনায় চরম সংকটে শিক্ষাব্যবস্থা, দুশ্চিন্তায় বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষার্থীরা

মেহেরাবুল ইসলাম সৌদিপ,জবি প্রতিনিধিঃ

করোনা এ যেনো এক আতংকে নাম। পুরো বিশ্বে ছড়িয়ে পড়েছে করোনা ভাইরাস। প্রতিদিনই মৃত্যুর সারিতে যোগ হচ্ছে হাজার, হাজার লাশ। এখন পযন্ত করোনা বিস্তারের একটি কারন বেশি করে লক্ষ্য করা গেছে। সেটি হলো অসচেতনতা। পৃথিবীর যতো গুলো দেশে আজ করোনা ভয়ানক হয়ে উঠেছে তার জন্য তাদের খামখেয়ালী ও অসচেনতাই দায়ী।

বাংলাদেশ এদিক থেকে ব্যাতিক্রম। প্রথম থেকেই সতর্ক। করোনা মোকাবেলায় প্রথম থেকেই জনসমাগম হয় এমন সব কার্যকর বন্ধ ঘোষণা করেছে। প্রথম দিকে সব স্কুল, কলেজ, বিশ্ববিদ্যালয় বন্ধ ঘোষনা করলেও পরবর্তীতে সকল অফিস, আদালত ও বন্ধ ঘোষণা করা হয়। সরকারের এ পদক্ষেপের ফলে করোনা অনেকাংশে মোকাবেলা করা সম্ভব হলেও বাংলাদেশের অর্থনীতি ও শিক্ষাব্যবস্থা চরম সংকটের মধ্যে পরেছে। ইতিমধ্যে করোনা ভাইরাস এর কারণে এবারের এইচএসসি পরীক্ষা পিছিয়ে দেওয়া হয়েছে। যা গত ১ লা এপ্রিল হওয়ার কথা ছিল।


দেশের এই ক্রান্তিলগ্নে সবচেয়ে বেশি প্রভাব পড়ছে শিক্ষা খাতে। শিক্ষার্থীদের পড়াশোনার প্রতি আগ্রহ হারিয়ে ফেলা থেকে শুরু করে শিক্ষা ব্যবস্থা কিরুপ হবে তা নিয়ে চিন্তিত শিক্ষক-শিক্ষার্থী সহ অভিভাবকবৃন্দরা ও। ভবিষ্যৎ পাঠদান নিয়ে স্কুল-কলেজ থেকে শুরু করে বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষার্থীদের মাঝে ও বিরাজ করছে স্থবিরতা। করোনায় শিক্ষাব্যবস্থার সংকট নিয়ে বিশ্ববিদ্যালয়ের ভাবনা তুলে ধরেছেন জগন্নাথ বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষার্থী ও সাংবাদিক মেহেরাবুল ইসলাম সৌদিপ।


ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের গণযোগাযোগ ও সাংবাদিকতা বিভাগের শিক্ষার্থী ও সাংবাদিক শোয়াইব আহমেদ বলেন, করোনা ভাইরাস প্রাদুর্ভাবে পুরো বিশ্ব কাটাচ্ছি ঘরবন্দী জীবন। পাড় হয়ে যাচ্ছে সৃষ্টিকর্তার বেঁধে দেয়া সময়। সবাই নিজ নিজ জায়গায় আটকা পড়ে আছে। অধিকাংশ মানুষ কর্মহীন বেকার হয়ে গেছেন। আবার যারা কর্মক্ষেত্র চলমান তাদেরও নিজেদেরকে চরম ঝুঁকির মধ্যে রেখে চালিয়ে যেতে হচ্ছে কাজ। এইরকম বিষাদময় সময়ে শিক্ষার্থীরাও কোণঠাসা অবস্থায় অলসভাবে অতিবাহিত করছে তাদের পড়াশোনার প্রকৃত সময়টুকু। কোমলমতি শিক্ষার্থীদের অভিভাবকরাও নিজেদের সন্তানদের নিয়ে রয়েছে চিন্তিত। কেউই জানে না কবে আবার সুস্থ পরিবেশ ফিরে আসবে, শিক্ষা প্রতিষ্ঠান খুলবে, শিক্ষার্থীরা আবার তাদের সাধারণ নিয়মে শুরু করবে তাদের পড়াশোনা। করুণ এই অবস্থায় অনেক বেসরকারি ও কিছু  সরকারি শিক্ষা প্রতিষ্ঠান অল্প পরিসরে চালু করেছে অনলাইন পাঠদান কার্যক্রম কিন্তু তাতে একদিকে নানা প্রতিবন্ধকতার কারণে যেমনি সবার অংশগ্রহণ নিশ্চিত করা যাচ্ছে না তেমনি আবার স্বল্প সময়ের মধ্যে ক্লাস নেয়া এবং ক্লাসের সংখ্যা কম থাকায় পুরো সিলেবাস শেষ করার ব্যাপারেও সন্দিহান শিক্ষকরা। এই অবস্থায় শিক্ষা কার্যক্রম চলমান রাখতে সরকারি ও বেসরকারি সম্মিলিত উদ্যোগ অত্যন্ত জরুরি। দেশের সিম অপারেটিং কোম্পানিগুলোর সাথে কথা বলে শিক্ষার্থীদের জন্যে বিনামূল্যে কিংবা স্বল্পমূল্যে চাহিদা মতো ইন্টারনেট সেবা এবং অভিভাবকদের উচিত নিজেদের উদ্যোগে নিয়মিত তাদের সন্তানদের পড়তে অভ্যস্ত করা এবং কোমলমতি শিক্ষার্থীরা যাতে কোনোভাবেই অলস দুষ্টুমি আর খেলার ছলে বিপদে চলে না যায় তার প্রতি তীক্ষ্ণ দৃষ্টি রাখা।



জগন্নাথ বিশ্ববিদ্যালয়ের মার্কেটিং বিভাগের ২য় বর্ষের শিক্ষার্থী আসমা আলী মীম বলেন, বিশ্বে উদ্ভট করোনা (কোভিড-১৯) ভাইরাসের কারণে দেশের অর্থনীতি সহ বিভিন্ন ক্ষেত্রে দেখা দিয়েছে চরম সংকট। শিক্ষা ব্যবস্থা ও তার ব্যতিক্রম নয়। এ পরিস্থিতিতে গত ১৬ মার্চ থেকে দেশের শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানসমূহ এবং এর কিছু দিন পর থেকেই সাধারণ ছুটি ঘোষণা করা হয়। ধাপে ধাপে শিক্ষা-প্রতিষ্ঠান ও সাধারণ ছুটির মেয়াদ বৃদ্ধি করা হয়। গত ২৭ এপ্রিল মাননীয় প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা এক ব্রিফিংয়ে জানান, 'পরিস্থিতি স্বাভাবিক না হলে শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান সেপ্টেম্বর মাস পর্যন্ত বন্ধ রাখা হবে।' এক সমীক্ষায় দেখা গেছে, যে সকল স্কুলগুলোতে বোর্ড পরীক্ষার আসন বিন্যাস করা হয়, সে সকল স্কুলের প্রাথমিক ও মাধ্যমিক পর্যায়ের শিক্ষার্থীরা চলতি বছরে জানুয়ারী মাস ব্যতীত ক্লাস করার সুযোগ পায়নি বললেই চলে। কেননা গত ফেব্রুয়ারি মাসে এসএসসি পরীক্ষা অনুষ্ঠিত হওয়ার কারণে সে সকল স্কুলের অন্যান্য ক্লাস, পরীক্ষাগুলো বন্ধ ছিল। অন্যদিকে গত পহেলা এপ্রিল এইচএসসি পরীক্ষা অনুষ্ঠিত হওয়ার কথা থাকলেও করোনা ভাইরাসের কারণে তা স্থগিত করা হয়েছে, যা এখনো পর্যন্ত নেওয়া সম্ভব হয়নি। বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষার্থীরাও সেশনজটে পড়ার বড় আশঙ্কায় আছে। ফলে শিক্ষাব্যবস্থা অনেকটাই পিছিয়ে পড়বে বলে আমি মনে করি। দীর্ঘদিনের এই ক্ষতি কিভাবে পোষানো হবে তা নিয়ে গভীর চিন্তাভাবনা করছেন সংশ্লিষ্টরা। কিছু বেসরকারি শিক্ষা প্রতিষ্ঠানে অনলাইনের মাধ্যমে ক্লাস করালেও বেশিরভাগ সরকারি ও বেসরকারি প্রতিষ্ঠানে পর্যাপ্ত নেটওয়ার্ক সুবিধার অভাবে ক্লাস করাতে পারছে নাহ। এখন পর্যন্ত সংসদ টেলিভিশনে ক্লাস প্রচার আর কিছু প্রতিষ্ঠানের অনলাইনে পড়াশোনা ছাড়া ক্ষতি পোষানোর দৃশ্যমান কোনো উদ্যোগই নেই। শিক্ষার্থীদের পর্যাপ্ত স্বাস্থ্য ব্যবস্থা নিশ্চিত না করা পর্যন্ত মাননীয় শিক্ষামন্ত্রী ডাঃ দীপু মনি শিক্ষা প্রতিষ্ঠান খোলা হবে না বলে জানিয়েছেন। এমতাবস্থায় আমাদের শিক্ষার্থীদের উচিত হবে বাসায় বসেই পর্যাপ্ত পরিমাণে পড়াশোনার বিভিন্ন স্কিল ডেভেলপমেন্ট এর মাধ্যমে নিজেকে এগিয়ে রাখা যাতে এই ক্লান্তিলগ্ন শেষ হওয়ার পরপরই আমরা এই অবস্থা থেকে উওরন করতে পারি।



রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয়ের মনোবিজ্ঞান বিভাগের শিক্ষার্থী হোসনে সাদিয়া নিতু বলেন, বৈশ্বিক মহামারি করোনাভাইরাসের প্রভাবে সারাবিশ্ব আজ চরম বিপর্যস্থ। সারাবিশ্ব বর্তমানে লকডাউনে। বিশ্বের অর্থনীতি আজ চরমভাবে ক্ষতিগ্রস্থ এবং হুমকির মধ্যে পড়েছে। বাংলাদেশে করোনা ভাইরাসের প্রভাবে অন্যান্য খাতের মতো শিক্ষাখাত ও চরম বিপর্যয়ের মুখোমুখি অবস্থান করছে। সারাদেশের শিক্ষাব্যবস্থা এখন মুখথুবড়ে পড়েছে। গত প্রায় তিনমাস যাবৎ দেশের সকল স্কুল, কলেজ, মাদরাসা, বিশ্ববিদ্যালয়সহ সকল শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান বন্ধ রয়েছে। এতে লক্ষ লক্ষ শিক্ষার্থীর লেখাপড়া চরম সংকটের মধ্যে পড়েছে। দেশের অন্যতম বৃহৎ পাবলিক পরীক্ষা এইচএসসি ফাইনাল স্থগিত করা হয়েছে। কিন্তু কখন এই পরীক্ষা অনুষ্ঠিত হবে এই মুহূর্তে তা বলাও সম্ভব নয়। ফলে তাদের অপূরণীয় ক্ষতি হলো। নতুন প্রজন্মের জন্য এটি একটি চরম ধাক্কা। অনেকের কঠোর পরিশ্রমে করা পরীক্ষার প্রস্তুতি জলাঞ্জলি দিতে হলো। ভাইরাসের ফলে দেশের সরকারি-বেসরকারি সকল বিশ্ববিদ্যালয় বন্ধ এবং সকল পরীক্ষা স্থগিতের ফলে উচ্চশিক্ষার ক্ষেত্রেও চরম সংকট দেখা দিয়েছে। বিশেষ করে বিভিন্ন চূড়ান্ত পরীক্ষা স্থগিতের ফলে শিক্ষার্থীরা চরম হতাশায় নিমজ্জিত হয়েছেন। এমনও শিক্ষার্থী আছে যাদের একটি বা দুইটি পরীক্ষা বাকি ছিল তারাও আটকা পড়ে রয়েছেন। আদৌও কখন সেই পরীক্ষা হবে সেটি কেউ জানেনা। দেশের বিশ্ববিদ্যালয় গুলোতে অনলাইনে ক্লাস নেয়ার পরিকল্পনা গ্রহণ করা হলেও তা বিভিন্ন সমস্যার কারনে বাস্তবায়ন করা সম্ভব হয়নি। এর ফলে ব্যপকভাবে তলানিতে পড়ে গেছে শিক্ষাব্যবস্থা। আবার দেশের শিক্ষাব্যবস্থা নিয়ে কারোরই খুব বেশি ভাবতে দেখা যাচ্ছে না। করোনা ভাইরাসের বিপরীতে আমাদের শিক্ষাব্যবস্থাকে সচল রাখতে হলে বিকল্প পদ্ধতি এখনই অবলম্বন করা প্রয়োজন। নতুবা আমাদের দেশের শিক্ষাব্যবস্থা আরও তলানিতে অবস্থান করতে পারে।



রাজশাহী প্রকৌশল ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়ের তড়িৎ ও ইলেক্ট্রনিক কৌশল বিভাগের শিক্ষার্থী  নাসরিন রিয়া বলেন, করোনা মহামারীতে শিক্ষাব্যাবস্থা চরম সংকটে। মাসের পর মাস বন্ধ পড়ে আছে স্কুল,কলেজসহ সকল পাবলিক ও প্রাইভেট বিশ্ববিদ্যালয় গুলো। এই অনির্দিষ্টকালের বন্ধে ঘরে বন্দী জীবন কাটাচ্ছে শিক্ষার্থীরা, মানসিকভাবে বিপর্যস্ত হয়ে পড়ছে। সব থেকে বেশী কোনঠাসা হয়ে আছে ২০২০ ব্যাচের এইসএসসি পরীক্ষার্থীরা, কবে পরীক্ষা অনুষ্ঠিত হবে নেই কোনো প্রকার নিশ্চয়তা। আতংকিত হয়ে কাটাচ্ছে এই অনির্দিষ্টকালের অবকাশ। এরই মধ্যে অনেক বিশ্ববিদ্যালয় অনলাইন ক্লাস শুরু করেছে, নেটওয়ার্কিং ব্যাবস্থার শোচনীয় অবস্থার জন্য অনেক শিক্ষার্থীই পাঠদান হতে বঞ্চিত হচ্ছে।


নোয়াখালী বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয় অণুজীববিজ্ঞান বিভাগের শিক্ষার্থী এস আহমেদ ফাহিম বলেন, করোনাভাইরাসের প্রাদুর্ভাবে বন্ধ হয়ে গেছে শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান। পিএসসি, জেএসসি, এসএসসি, এইচএসসি এবং ভর্তি পরীক্ষা গুলো পিছিয়ে যাবে এবং কবে হবে তাও অনিশ্চিত। এতে শিক্ষার্থীদের মধ্যে বিরাজ করছে দুশ্চিন্তা। দীর্ঘসময় শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান বন্ধ থাকায় শিক্ষার্থীদের পড়াশুনায় ব্যাঘাত ঘটছে। অনেক শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানে অনলাইনে ক্লাস শুরু হলেও সব শিক্ষার্থীরা এতে অংশগ্রহণ করতে পারছে না। দীর্ঘসময় এই পরিস্থিতি চলমান থাকলে শিক্ষাব্যবস্থায় ব্যাপক ক্ষতির সম্মুখীন হবে এবং পুনরায় তা চলমান করতে শিক্ষাপদ্ধতিতে পরিবর্তন আনতে হবে বলে আমি মনে করি।



কয়রায় হরিনখোলা বেঁড়িবাঁধে এমপির উপস্থিতিতে জোয়ারের পানি আটকালেন হাজার হাজার জনতা

কয়রায় হরিনখোলা  বেঁড়িবাঁধে এমপির উপস্থিতিতে   জোয়ারের পানি আটকালেন হাজার হাজার জনতা






মোহাঃ ফরহাদ হোসেন কয়রা(খুলনা) প্রতিনিধিঃ

খুলনার উপকূলীয় এলাকা কয়রা উপজেলার ঘাটাখালি বেঁড়িবাঁধ বুধবার সংসদ সদস্য আলহাজ্ব আকতারুজ্জামান বাবুর উপস্থিতিতে হাজার হাজার জনতা সেচ্ছাশ্রমের ভিত্তিতে রিং বাঁধ দিয়ে আটকালেন জোয়ারের পানি। উল্লেখ্য গত ২০ মে ঘূর্ণিঝড় আম্পানের উচ্চ জোয়ারের পানিতে ঘাটাখালি ও ২ নং কয়রা কপোতাক্ষ নদীর বেঁড়িবাঁধ ভেঙ্গে কয়রা উপজেলা পরিষদ সহ ৯টি গ্রাম লবন পানিতে ভেসে যায় এবং জোয়ার ভাটা অব্যহত থাকে। এরপর সপ্তাহকাল স্থানীয় হাজার হাজার জনতা সেচ্ছাশ্রমের ভিত্তিতে গত ৩০ মে রিং বাঁধ দিয়ে জোয়রের পানি আটকাতে সক্ষম হয়। কিন্তু স্থানীয় রাজনৈতিক কোন্দলে কয়রা সদর ইউপি চেয়ারম্যানকে লাঞ্চিত ও স্থানীয় মহিলা ইউপি সদস্যের স্বামী রফিক সিরাজকে কতিপয় সন্ত্রাসী মারপিট করায় রিং বাঁধ সংস্কারের কার্যক্রম বন্ধ হয়ে যায়।



 ফলে ২ জুন রাতে জোয়ারের পানিতে এবার রিং বাঁধ ভেঙ্গে পুনরায় প্লাবিত হতে থাকে উপজেলা সদর সহ ৯ টি গ্রাম। এদিকে ঘাটাখালি বাঁধ নিয়ে ষড়যন্ত্র হচ্ছে এমন খবর জানার পর কয়রা-পাইকগাছার জাতীয় সংসদ সদস্য আলহাজ্ব আকতারুজ্জামান বাবু ৯ জুন মঙ্গলবার কয়রা উপজেলা পরিষদে উপজেলা নির্বাহী অফিসার, উপজেলা চেয়ারম্যান, উপজেলা আওয়ামীলীগের নেতৃবৃন্দ, কয়রা সদর ও মহারাজপুর ইউপি চেয়ারম্যানসহ পানি উন্নয়ন বোর্ডের কর্মকর্তার উপস্থিতিেিত এক জরুরী বৈঠকে বুধবার রিং বাঁধ দিয়ে পানি আটকানোর সিদ্ধান্ত হয়। সে মোতাবেক বিভিন্ন মসজিদের মাইকে এবং ব্যাপক প্রচারের মাধ্যমে বুধবার সাধারণ মানুষকে সকাল ৬ টার মধ্যে বাঁধে হাজির হতে অনুরোধ করা হয়। অতঃপর বুধবার প্রায় ৮ হাজার সাধারণ মানুষ সকাল ৭ টার মধ্যে বাঁধে হাজির হয়ে রিং বাঁধের কাজ শুরু করে এবং দুপুর ১২ টার মধ্যে পানি আটকাতে সক্ষম হয় এবং এসময় সংসদ সদস্য বাঁধে উপস্থিত হয়ে নিজেই বাঁধে কাজ করে উৎসুক জনতাকে উদ্বুদ্ধ করে। 


উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা শিমুল কুমার সাহা, উপজেলা আওয়ামীলীগের সভাপতি জিএম মোহসিন রেজা, উপজেলা চেয়ারম্যান আলহাজ্ব শফিকুল ইসলাম, ইউপি চেয়ারম্যান সাংবাদিক হুমায়ুন কবির বাঁধে কর্মরতদের সার্বিক সহযোগিতা করায় দ্রুত পানি আটকানো সম্ভব হয়েছে। এদিকে বাঁধে কর্মরত সাধারণ জনতার উদ্দেশ্যে মাননীয় সংসদ সদস্য বলেন, মাননীয় প্রধানমন্ত্রী জননেত্রী শেখ হাসিনা ও তার ভাই জননেতা শেখ হেলাল এমপি কয়রা বেঁড়িবাঁধের বিষয়ে সার্বক্ষনিক খোজখবর নিচ্ছেন এবং দ্রুত কয়রায় ক্ষতিগ্রস্থ সকল বাঁধ সংস্কার করার জন্য অর্থ বরাদ্ধের আশ্বাস দিয়েছেন

ঝিনাইদহে বিএনপি থেকে আওয়ামী লীগে যোগদান, সংঘর্ষে আহত- ২০!

ঝিনাইদহে বিএনপি থেকে  আওয়ামী লীগে যোগদান, সংঘর্ষে আহত- ২০!





খোন্দকার আব্দুল্লাহ বাশার, ঝিনাইদহ জেলা প্রতিনিধি 

ঝিনাইদহ শহরের পৌর এলাকার খাজুরা গ্রামে বিএনপি থেকে আওয়ামী লীগে যোগদান করাকে কেন্দ্র করে দু’দল গ্রামবাসীর সংঘর্ষে অন্তত ২০ জন আহত হয়েছে। বুধবার সন্ধ্যায় শহরের পৌর এলাকার খাজুরা গ্রামে এ ঘটনা ঘটে। স্থানীয়রা জানায়, মঙ্গলবার সন্ধ্যায় খাজুরা এলাকার জাহিদ হোসেনের নেতৃত্বে ৩৫/৪০ জন বিএনপি নেতাকর্মীরা স্থানীয় আওয়ামী লীগ নেতা লিটনের মাধ্যমে রাতে আনুষ্ঠানিক ভাবে আওয়ামী লীগে যোগদান করে ভুরিভোজ করেন। এ নিয়ে প্রতিপক্ষ গ্রুপ ক্ষিপ্ত হয়। বুধবার সকাল থেকে আওয়ামী লীগের অপরপক্ষের নেতা আবুল হোসেনের লোকজন নব্যযোগদান কৃত নেতাকর্মীদের উপর চড়াও হতে থাকে। সন্ধ্যায় একটি চয়ের দোকানে আবুলের সমর্থকরা জাহিদের লোকজনের উপর হামলা চালালে সংঘর্ষ বেধে যায়। এতে উভয় পক্ষের অন্তত ২০ জন আহত হয়। খবর পেয়ে পুলিশ ঘটনাস্থলে পৌঁছে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রনে আনে। আহতদের উদ্ধার করে ঝিনাইদহ সদর হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে। এদের মধ্যে গোলাম বারীর ছেলে ফারুকসহ ২ জনের শারিরীক অবস্থা গুরুতর বলে জানিয়েছেন চিকিৎসক। তাদের উন্নত চিকিৎসার জন্য ঢাকায় রেফার্ড করা হয়েছে। ফারুকের ভুড়ি বের হয়ে গেছে। প্রত্যাক্ষদর্শী লিটন নামে একজন জানান, এ সময় তারা গুলি ও বোমার শব্দ শুনছেন। ঝিনাইদহ সদর থানার ওসি মিজানুর রহমান খান সংঘর্ষের বিষয়টি নিশ্চিত করে বলেন, এলাকার পরিস্থিতি বর্তমানে স্বাভাবিক রয়েছে। এলাকায় পুলিশ মোতায়েন করা হয়েছে।