যশোরে তিন বন্ধি কিশোরকে পিটিয়ে হত্যার প্রমাণ পেয়েছে তদন্ত কমিটি!

যশোরে তিন বন্ধি কিশোরকে পিটিয়ে হত্যার প্রমাণ পেয়েছে তদন্ত কমিটি!



নিউজ ডেস্কঃ যশোর শিশু উন্নয়ন কেন্দ্রে কর্মকর্তাদের বিরুদ্ধে তিন বন্দি কিশোরকে পিটিয়ে হত্যার প্রমাণ পেয়েছে সমাজসেবা অধিদফতর কর্তৃক গঠিত উচ্চ পর্যায়ের দুই সদস্যের তদন্ত কমিটি। গত মঙ্গলবার তারা ঢাকায় ফিরে গেছেন এবং বুধবারের মধ্যে তদন্ত রিপোর্ট জমা দেয়ার কথা রয়েছে। শিশু উন্নয়ন কেন্দ্রে ঘটনার দিন সিসি ক্যামেরায় ধারণ করা ভিডিও ফুটেজও মুছে ফেলার প্রমাণ মিলছে বলে জানা গেছে।

এদিকে যশোরে গঠিত তিন সদস্যের কমিটি আরো সময় চেয়ে (মোট সাত দিনের) সমাজ কল্যাণ মন্ত্রণালয়ে আবেদন করেছেন। কারণ ওই কমিটি অভিযুক্ত কর্মকর্তাদের সাথে কথা বলবেন বলে আদালতে আবেদন করেছিলেন। কিন্তু আদালত কর্তৃক মঞ্জুর করা রিমান্ড শেষ না হওয়া পর্যন্ত আসামিদের সাথে কথা বলার সুযোগ নেই বিধায় তারা ওই সময় আবেদন করেন বলে জানিয়েছেন তদন্ত কমিটির প্রধান অতিরিক্ত জেলা প্রশাসক মুহাম্মদ আবুল লাইছ।
অন্যদিকে যশোরের পুলিশ সুপার আশরাফ হোসেন বুধবার দুপুরে ঘটনাস্থল পুলেরহাটস্থ শিশু উন্নয়ন কেন্দ্র ফের পরিদর্শন করেছেন। তার সাথে ঊর্ধ্বতন অন্যান্য কর্মকর্তা ছিলেন। তার পরিদর্শনের কথা নিশ্চিত করে কোতয়ালি থানার ওসি মনিরুজ্জামান জানিয়েছেন, ঘটনার পর কী পরিস্থিতিতে আছে ওই কেন্দ্র, সেখানকার বন্দিরা কেমন আছে, নতুন কর্মকর্তারা কী ভাবে কাজ করছেন এই সব বিষয়ে পুলিশ সুপার খোঁজ খবর নিয়েছেন।
তবে পুলিশের একটি সূত্রে জানাগেছে, ঘটনার দিন অর্থাৎ ১৩ আগস্ট ১৮ বন্দির ওপর পৈশাচিক নির্যাতনের পর দুপুরেই মারা যায় এক কিশোর। তাকে হাসপাতালে না নিয়ে মাঠের মধ্যে ফেলে রেখেছিলেন কর্মকর্তারা। পরিস্থিতি সামাল (ধামাচাপা) দিতে তারা নানা ধরণের পরিকল্পনা করেন। সেখানে রাখা সিসি ক্যামেরায় ধারণ করা ভিডিও ফুটেজও মুছে ফেলেন তারা। এমন কি বাকি বন্দিদের নানা ভাবে ভয়ভীতি দেখানো হয় ঘটনা কাউকে না বলার জন্য। মামলার আলামত হিসাবে জব্দ করা লাঠি, বাঁশের চটা, ক্রিকেট খেলার উইকেট, প্লাস্টিকের পাইপ, কাঠসহ অন্যান্য সরঞ্জাম লুকিয়ে রাখা হয়। অবশ্য পুলিশ গিয়ে ওই আলামত উদ্ধার করে। আর মুছে ফেলা ভিডিও ফুটেজও ভিন্ন প্রযুক্তি ব্যবহার করে কিছুটা উদ্ধার করেছে পুলিশ।
অপর একটি সূত্রে জানাগেছে, ১৩ আগস্ট দুপুরে কেন্দ্রের সহকারি তত্ত্বাবধায়ক মাসুম বিল্লাহ ও ফিজিক্যাল ইন্সট্রাক্টর একেএম শাহানুর আলম বন্দিদের ধরে অফিসে নেন। এরপর তারাই শুরু করেন মারপিট। পরে তারা চারদিকে পাহারা বসিয়ে অন্য বন্দিদের মারতে নির্দেশ দেন। ফলে বেধড়ক মারপিটে মারা যায় তিন বন্দি। আর আহত হয় ১৫জন। পুলিশ ও ঢাকাস্থ উচ্চ পর্যায়ের তদন্ত কমিটির কাছে এই ধরনের অভিযোগের প্রমান আছে।
সমাজসেবা অধিদফতরের পরিচালক (প্রতিষ্ঠান) সৈয়দ নুরুর বসির জানিয়েছেন, যশোর শিশু উন্নয়ন কেন্দ্রের ১৩ আগস্টের ঘটনার তদন্ত প্রতিবেদন মহাপরিচালকের কাছে জমা দেয়া হবে। কেন্দ্রের কর্মকর্তাদের বিরুদ্ধে উত্থাপিত অভিযোগের প্রমান পাওয়া গেছে বলে তিনি মন্তব্য করেছেন।
মামলার তদন্তকারী কর্মকর্তা ইন্সপেক্টর রোকিবুজ্জামান জানিয়েছেন, ‘আসামিদের রিমান্ড শেষ হয়েছে। তাদের কাছ থেকে অনেক গুরুত্বপূর্ণ তথ্য পাওয়া গেছে। ওই তথ্যের ভিত্তিতে তদন্তের বাকি কাজ এগিয়ে নেয়া যাবে। ’
তিনি আরো বলেছেন, ‘কিশোরদের মধ্যে চুয়াডাঙ্গার আলমডাঙ্গার আনিস নামে এক বন্দির শ্যোন অ্যারেস্টের আবেদন বুধবার আদালত মঞ্জুর করেছে। ফলে তাকে এই মামলায় শ্যোন অ্যারেস্ট দেখানো হয়েছে। বর্তমানে এই মামনার মোট আসামি ১৩জন।

আত্রাইয়ে স্বেচ্ছাসেবক দলের ৪০তম প্রতিষ্ঠা বার্ষিকী ও দোয়া মাহফিল অনুষ্ঠিত

 আত্রাইয়ে স্বেচ্ছাসেবক দলের ৪০তম প্রতিষ্ঠা বার্ষিকী ও দোয়া মাহফিল অনুষ্ঠিত


 মোঃ ফিরোজ হোসাইন রাজশাহী ব্যুরোঃনওগাঁরআত্রাইয়ে জাতীয়তাবাদী স্বেচ্ছাসেবক দলের ৪০তম প্রতিষ্ঠা বার্ষিকী উপলক্ষে আলোচনা সভা ও দোয়া মাহফিল অনুষ্ঠিত হয়েছে।


বুধবার(১৯আগষ্ট) সকালে দলটির প্রতিষ্ঠা বার্ষিকী উদযাপন উপলক্ষে উপজেলার রেলওয়ে স্টেশন আম চত্বরের অস্থায়ী দলীয় কার্যালয়ের সামনে স্বেচ্ছাসেবক দলের আহ্বায়ক আব্দুল মতিন এর সভাপতিত্বে এবং যুগ্ম আহবায়ক আজাদ হোসেনের সঞ্চালনায় আলোচনা সভায় বক্তব্য রাখেন, আত্রাই থানা বিএনপির আহ্বায়ক কমিটির যুগ্ম আহ্বায়ক আব্দুল মান্নান সদ্দার, সদস্য তসলিম উদ্দিন, যুবদল আহবায়ক শেখ একরামুল বারী রঞ্জু, যুগ্ম আহ্বায়ক খোরশেদ আলম, আশরাফুল ইসলাম লিটন, পারভেজ ইকবাল, বুলেট, বাবু, সাগর,স্বেচ্ছাসেবক দলের যুগ্ম আহ্বায়ক আলমগীর হোসেন, তুষার, ছাত্রনেতা রায়হান কবির রতন সহ আরো উপস্থিত ছিলেন, বিএনপি,যুবদল,ছাত্রদল ও বিএনপির বিভিন্ন অঙ্গ সংগঠনের নেতৃবন্দ।

পরিশেষে সদ্য প্রায়াত স্বেচ্ছাসেবক দলের সভাপতি শফিউল বারী বাবু ভাইয়ের রুহের মাগফেরাত কামনায় দোয়া করা হয়।

উক্ত অনুষ্ঠানের দোয়া পরিচালনা করেন প্রফেসর মো.সাইফুল ইসলাম।

নাগরপুরে নৌকা ডুবিতে নিহত ১, নিখোঁজ ৭

 নাগরপুরে নৌকা ডুবিতে নিহত ১, নিখোঁজ ৭




হাসান সাদী,নাগরপুর(টাঙ্গাইল)প্রতিনিধিঃটাঙ্গাইলের নাগরপুরে উপজেলার সদর ইউনিয়নের পাইশানা-তুর্কি বিলে নৌকা বাইচ দেখতে গিয়ে ইঞ্জিনচালিত নৌকাডুবিতে ১ জনের মৃত্যু হয়েছে। গুরুতর আহত অবস্থায় ১জনকে উদ্ধার করা হয়েছে এছাড়া ৭ জন নিখেঁাজ রয়েছে। বুধবার সন্ধ্যার দিকে উপজেলার পানান-পাইশানা নামক স্থানে এঘটনা ঘটে। নিহত কন্যাশিশুর পরিচয় পাওয়া গেছে। সে হলো বেকড়া ইউনিয়নের বারাপুষা গ্রামের ফারুক মিয়ার মেয়ে ফাহিমা আক্তার (৭) । নিখোঁজদের পরিচয় এখনও পাওয়া যায়নি। এ রিপোর্ট লেখা পর্যন্ত ফায়ার সার্ভিসের ডুবুরিদল ঘটনাস্থলে পৌছায়নি। 



স্থানীয় সূত্রে জানা যায়, বুধবার বিকালে পানান গ্রামবাসীর উদ্যোগে পাইশানা-তুর্কি বিলে এক নৌকা বাইচের আয়োজন করে। নৌকা বাইচ দেখতে উপজেলার বিভিন্ন স্থান ছোট বড় নৌকায় করে লোকজন নৌকা বাইচ দেখতে আসে। উপজেলার টুইটাম থেকে আসা অতিরিক্ত যাত্রী বোঝাই একটি ইঞ্জিনচালিত ছোট নৌকা হঠাৎ করে বিলের মধ্যে ডুবে যায়। এতে অনেকেই সাতরিয়ে তীরে উঠতে পারলেও ৭-৮ জন নিখোঁজ হয়। পরে এলাকাবাসী দুইজনকে উদ্ধার করলেও ফাহিমাকে মৃত পাওয়া যায়।


ইতিমধ্যে ঘটনাস্থল পরিদর্শনে গেছেন উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান আব্দুস ছামাদ দুলাল, উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা সৈয়দ ফয়েজুল ইসলাম ও সদর ইউপি চেয়ারম্যান একে এম কামরুজ্জামান মনি। উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা সৈয়দ ফয়েজুল ইসলাম জানিয়েছেন, টাঙ্গাইল থেকে ডুবুরিদল ডাকা হয়েছে তারা আসলেই নিখোঁজদের উদ্ধার...

মাগুরায় পুলিশের হাতে ইয়াবাসহ তিন মাদক ব্যবসায়ী আটক

মাগুরায় পুলিশের হাতে ইয়াবাসহ তিন মাদক ব্যবসায়ী আটক




মোঃকুতুবুল আলম, মহম্মদপুর(মাগুরা)

 মাগুরায় মাদক মুক্ত সমাজ গড়‌ার নি‌র্দেশনা বাস্তবায়‌নে মাগুরা জেলা পু‌লিশ সুপার খান মোহাম্মদ রে‌জোয়ানের মাদক নির্মূল তৎপরতায় মাগুরা সদর থানার অফিসার ইনচার্জ মোঃ জয়নাল আবে‌দিনের নি‌র্দেশনায় থানার ইন্স‌পেক্টর (তদন্ত) ‌মোঃ সাইদুর রহমা‌ন ও অপা‌রেশন্স মোঃ আশরাফুল ইসলা‌মের নেতৃ‌ত্বে থানার মাদক অভিযান টিম গোপন সংবা‌দের ভি‌ত্তি‌তে আজ বুধবার ১৯ই আগষ্ট সদর উপজেলার থানাধীন বরুনা‌তৈল প‌শ্চিমপাড়া এলাকায় অভিযান ক‌রে ৯৪ পিছ ইয়াবা টেব‌লেটসহ তিনজন মাদক ব্যাবসায়ীকে গ্রেফতার করে। গ্রেফতারকৃতরা হ‌লো রিয়াজ মোল্যা (২৪), জাফর আলী মোল্যা (৫০) ও রেজাউল ইসলাম (৫৫) । আসা‌মিরা দীর্ঘ‌দিনযাবৎ দে‌শের বি‌ভিন্ন স্থান থে‌কে ইয়াবা সংগ্রহ ক‌রে মাগুরার বি‌ভিন্ন স্থা‌নে বি‌ক্রি ক‌রে আস‌ছিল। গ্রেফতারকৃত আসামী‌দের বিরু‌দ্ধে থানায় মাদক আই‌নে নিয়‌মিত মামলা দায়ের করা হ‌য়ে‌ছে বলে জানিয়েছেন মাগুরা সদর থানার দায়িত্বপ্রাপ্ত অফিসার ইনচার্জ ওসি জয়নাল আবেদীন।

ঝিনাইদহে সেচ্ছাসেবক দলের ৪০ তম প্রতিষ্ঠা বার্ষিকী পালন

ঝিনাইদহে সেচ্ছাসেবক দলের  ৪০ তম প্রতিষ্ঠা বার্ষিকী পালন





সম্রাট হোসেন, শৈলকুপা উপজেলা (ঝিনাইদহ) প্রতিনিধিঃবাংলাদেশ জাতীয়তাবাদী স্বেচ্ছাসেবক দলের ৪০তম প্রতিষ্ঠা বার্ষিকী উপলক্ষে ও সেচ্ছাসেবক দলের সদ্য প্রয়াত সভাপতি শফিউল বারী বাবুর মৃত্যুতে আলোচনা সভা ও দোয়া মাহফিলের আয়োজন করে ঝিনাইদহ জেলা সেচ্ছাসেবক দল।




উক্ত আলোচনা সভা ও দোয়া মাহফিলে প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন,

সাবেক ঝিনাইদহ জেলা জাতীয়তাবাদী আইনজীবী ফোরামের সভাপতি ও আইনজীবী সমিতির একাধিকবার নির্বাচিত সভাপতি ও সাধারন সম্পাদক, ঝিনাইদহ জেলা বিএনপি'র আহবায়ক, বীর মুক্তিযোদ্ধা,অধ্যক্ষ, জননেতা এ্যাডঃ এম এম মশিয়ুর রহমান, প্রধান বক্ত হিসেবে উপস্থিত ছিলেন, ঝিনাইদহ ২ আসনের একাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনের বিএনপি মনোনীত প্রার্থী, হরিনাকুণ্ডু উপজেলা পরিষদের সাবেক সুযোগ্য সফল চেয়ারম্যান, সাবেক ছাত্রনেতা ও জেলা বিএনপির সদস্য সচিব, জননেতা আলহাজ্ব এ্যাডঃ এম এ মজিদ। বিশেষ অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন,  ঝিনাইদহ পৌর বিএনপি সাধারন সম্পাদক ও জেলা বিএনপি'র যুগ্ম আহবায়ক, মোঃ আব্দুল মজিদ বিশ্বাস( ছোট মজিদ)। সহ-সভাপতি আব্দুল বারী,

জেলা সেচ্ছাসেবক দলের যুগ্ম সম্পাদক মোঃ মশিউর রহমান, যুগ্ম-সাধারণ  সম্পাদক, মোঃ কাজল মালিতা, যুগ্ম সম্পাদক শরিফুল ইসলাম,যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক, লালু, জেলা সেচ্ছাসেবক দলের সাংগঠনিক সম্পাদক মোঃ শফিকুল ইসলাম শফি বিশ্বাস। শিক্ষা বিষয়ক সম্পাদক, মোঃ আব্দুল মান্নান,অর্থ বিষয়ক সম্পাদক মোঃ ফারুক হোসেন।থানা স্বেচ্ছাসেবক দলের অন্যতম নেতা হাবিব, জাকির, ঝিনাইদহ পৌর ছাত্রদলের সাবেক যুগ্ম সাধারন সম্পাদক ও জেলা ছাত্রনেতা, মোঃ সকিব আহাম্মেদ বাপ্পি সহ সিনিয়র নেতৃবৃন্দ।সভাপতিত্ব করেন জেলা স্বেচ্ছাসেবক দলের সহ-সভাপতি শেখ সেলিম। পরিচালনা করেন, জেলা সেচ্ছাসেবক দলের সিনিয়র যুগ্ম-সাধারণ সম্পাদক মোঃ সাইফুজ্জামান রিন্টু মুন্সী।

নওগাঁ - ৬ উপনির্বাচনে নৌকার মঝি হতে চান বিপ্লব

নওগাঁ - ৬ উপনির্বাচনে নৌকার মঝি হতে চান বিপ্লব




রাজশাহী ব্যুরোঃগত ২৭ জুলাই আত্রাই-রানীনগরের প্রয়াত এমপি ইসরাফিল আলম মৃত্যুবরন করায় এই আসনটি শূণ্য হয়ে পড়ে। বাংলাদেশ আওয়ামীলীগ থেকে ১৬ আগষ্ট প্রেস বিজ্ঞপ্তির মাধ্যমে মনোনয়ন প্রত্যাশিদের ফরম সংগ্রহের আহব্বান করেন। এরই ধারাবাহিকতাই ১৭ আগষ্ট নওগাঁ-৬ (আত্রাই-রানীনগর)মনোনয়ন উত্তোলন করেন এবং জমা দেন নাহিদ ইসলাম বিপ্লব।

রাজনৈতিক ভাবে ১৯৯১ সালে ছাত্রলীগের সদস্যপদ লাভ, ১৯৯৫-১৯৯৭ সাল পর্যন্ত যুগ্ন সাধারন সম্পাদক, বাংলাদেশ ছাত্রলীগ আত্রাই উপজেলা শাখা, ১৯৯৭-১৯৯৯ সাল পর্যন্ত সভাপতি, বাংলাদেশ ছাত্রলীগ আত্রাই উপজেলা শাখা, ১৯৯৮-২০০০ সাল পর্যন্ত সদস্য, বাংলাদেশ ছাত্রলীগ নওগাঁ জেলা শাখা। বর্তমানে ২০১০ হতে অদ্যবিধ পর্যন্ত সাংগঠনিক সম্পাদক, বাংলাদেশ আওয়ামীলীগ, আত্রাই উপজেলা শাখা, ২০১৫ হতে অদ্যবিধ পর্যন্ত সাংগঠনিক সম্পাদক, বাংলাদেশ সম্মিলিত সাংস্কৃতিক জোট, আত্রাই উপজেলা শাখা।

সাবেক এ ছাত্রলীগ নেতা আত্রাই উপজেলা আওয়ামীলীগের সাবেক সভাপতি প্রয়াত শহীদ এ্যড. সিদ্দিকুর রহমান রাজার ছোট ভাই। উল্লেখ্য ১৯৯৯ সালের ৩০ মার্চ প্রয়াত শহীদ এ্যড. সিদ্দিকুর রহমান রাজাকে সশস্ত্র সন্ত্রাসীরা প্রকাশ্য দিবালোকে নৃসংশ ভাবে গুলি ও জবাইকরে হত্যা করে। রাজনৈতিক পরিবেশে বেড়ে উঠা নাহিদ ইসলাম বিপ্লবের লক্ষ জনগনের সেবা করা। আত্রাই-রানীনগরের সাধারন জনগনের দোয়া নিয়ে তিনি মাঠে নেমেছেন।

এ ব্যাপারে নাহিদ ইসলাম বিপ্লব বলেন, আত্রাই- রানীনগরের সাধারন জনগন আমাকে আমার পরিবারকে অনেক ভালবাসে, আমি এবং আমার পরিবার সব সময় মানুষের সেবা করে আছসি, তাদের দোয়া ও সমর্থনে মনোনয়ন তুলেছি। মাননীয় প্রধানমন্ত্রী জননেনেত্রি শেখ হাসিনা যদি আমাকে মনোনয়ন দেন তাহলে আমি দুর্নীতি, অনিয়ম, মাদক মুক্ত ও সকল বৈষম্যহীন সমাজ গড়তে রক্তাত জনপদে শান্তির সু বাতাস ও সমৃদ্ধশালী আত্রাই-রানীনগর উপহার দিতে প্রতিজ্ঞাবদ্

দলীয় মনোনয়ন ফর্ম তুললেন সদ্য প্রয়াত এমপি ইসরাফিল আলমের স্ত্রী সুলতানা পারভীন বিউটি

দলীয় মনোনয়ন ফর্ম তুললেন সদ্য প্রয়াত এমপি ইসরাফিল আলমের স্ত্রী সুলতানা পারভীন বিউটি



 

মোঃ ফিরোজ হোসাইন রাজশাহী ব্যুরো:সংসদীয় এলাকা ৫১, নওগাঁ-৬(আত্রাই-রাণীনগর) উপনির্বাচনে নৌকা মার্কার প্রার্থী হতে মনোনয়ন ফরম তুলেছেন সদ্য প্রয়াত ইসরাফিল আলম এমপি মহোদয় সহধর্মিণী সুলতানা পারভিন বিউটি।

আজ ৩ ভাদ্র (১৮ আগস্ট) মঙ্গলবার আওয়ামী লীগ সভাপতি শেখ হাসিনার ধানমন্ডির রাজনৈতিক কার্যালয়ে গিয়ে নওগাঁ-৬ আসনের জন্য মনোনয়ন ফরম কেনেন তিনি।


উল্লেখ্য, রাণীনগর ও আত্রাই এই দুই উপজেলা নিয়ে গঠিত নওগাঁ-৬ ও সংসদীয় আসন-৫১। প্রায় ১ যুগ শাসন করার পর গত ২৭ জুলাই সাংসদ ইসরাফিল আলম মারা যাওয়ায় আসনটি শুন্য হয়।

প্রয়াত সাংসদ ইসরাফিল আলমের স্ত্রী পারভীন সুলতানা বিউটি বলেন, এই আসনে স্বামীর পাশাপাশি আমিও বিভিন্ন সময় এই দুই উপজেলার মানুষদের পাশে দাঁড়িয়েছি। যদি প্রধানমন্ত্রী আমাকে সুযোগ দেন তাহলে আমি ইসরাফিলের রেখে যাওয়া অসমাপ্ত কাজগুলো শেষ করবো ইনশাল্লাহ৷ 


সারা বিশ্বে এক সময় রক্তাক্ত জনপদ হিসেবে পরিচিতি পেয়েছিল জেলার রাণীনগর ও আত্রাই উপজেলা। সেই সময় এই জনপদে সর্বহারারা দিনে-দুপুরে মানুষকে জবাই করতো। সর্বহারার অধ্যায় শেষ করতেই উত্থান হয় জেএমবি নামক বাংলা ভাইয়ের। দীর্ঘদিন চলে তাদের নিমর্ম সন্ত্রাসী তাণ্ডব। তারা মানুষদের গোয়ালের গরু রাখেনি, ধানের গোলায় ধান রাখেনি। শুরু করেছিলো লুটপাটের রাজ্য। পরবর্তিতে ক্ষমতায় আসা আওয়ামী লীগ সরকারের কঠোর তৎপরতায় ও সদ্য প্রয়াত সাংসদ ইসরাফিল আলমের নেতৃত্বে সেই রক্তাক্ত জনপদে ফিরে আসে শান্তির সুবাতাস। বন্ধ হয় জবাই, হানাহানি ও রাহাজানি।

জানা গেছে, ১৯৯১ ও ৯৬ সালে বিএনপি থেকে মনোনয়ন নিয়ে নির্বাচনে বিজয়ী হন গৃহায়ণ ও গণপূর্ত সাবেক প্রতিমন্ত্রী আলমগীর কবীর। তার প্রতিদ্বন্দ্বী ছিলেন সাবেক সাংসদ মুক্তিযোদ্ধা ওহিদুর রহমান।

২০০১ সালে ইসরাফিল আলমকে পরাজিত করে আলমগীর কবীর বিজয়ী হন। ২০০৬ সালে বিএনপি-জামায়াত জোট সরকারের শেষের দিকে আলমগীর কবির এলডিপিতে যোগ দেন। একই বছরে এলডিপি থেকে পদত্যাগ করেন।


২০০৮সালে আওয়ামী লীগ থেকে মনোনয়ন পেয়ে বিপুল ভোটে বিজয়ী হন ইসরাফিল আলম। তার প্রতিদ্বন্দ্বী ছিলেন বিএনপির কেন্দ্রীয় কমিটির সদস্য মুক্তিযোদ্ধা আনোয়ার হোসেন বুলু। এরপর ২০১৪ সালে দশম জাতীয় সংসদ নির্বাচনে বিনা প্রতিদ্বন্দ্বিতায় এবং ২০১৮ সালের নির্বাচনে সাবেক প্রতিমন্ত্রী আলমগীর কবীরকে পরাজিত করে আবারোও বিজয়ী হন ইসরাফিল আলম। মূলত এ আসনটি চারবার বিএনপির অধীনে থাকলেও ২০০৮ সালের পর থেকে আওয়ামী লীগের দখলে রয়েছে।

সিরাজগঞ্জ বেলকুচিতে অবৈধভাবে বালু উত্তোলনে ৭৫ হাজার টাকা জরিমানা

 সিরাজগঞ্জ বেলকুচিতে অবৈধভাবে বালু উত্তোলনে ৭৫ হাজার টাকা জরিমানা


মাসুদ রানা সিরাজগঞ্জ জেলাপ্রতিনিধি:সিরাজগঞ্জ জেলার বেলকুচি উপজেলার বড়ধূল ইউনিয়নের চরবেল এলাকায়  যমুনানদী হতে অবৈধভাবে বালু উত্তোলনের দায়ে ৭৫ হাজার টাকা জরিমানা করেছেন ভ্রাম্যমাণ আদালত।

বুধবার বিকালে এই দন্ডাদেশ দিয়েছেন বেলকুচি উপজেলার উপজেলা নির্বাহী অফিসার ও ভ্রাম্যমাণ আদালতের বিচারক নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট মোঃ আনিসুর রহমান। ভ্রাম্যমাণ আদালতের পেশকার মোঃ হাফিজ উদ্দিন জানান,গোপন সংবাদের ভিত্তিতে সিরাজগঞ্জ জেলার বেলকুচি উপজেলার বড়ধূল ইউনিয়নের চরবেল এলাকায় ভ্রাম্যমাণ আদালতের অভিযান পরিচালিত হয়। এ সময় যমুনানদী হতে অবৈধভাবে বালু উত্তোলন দেখতে পান ভ্রাম্যমাণ আদালত। অবৈধভাবে বালু উত্তোলন করার দায়ে বরিশালের উজিরপুর উপজেলার মোঃ কবির হাওলাদার নামে এক বালু ব্যবসায়ীকে ৭৫ হাজার টাকা জরিমানা করা হয়। উক্ত অভিযানে সহযোগিতা করেন পৌর ভূমি সহকারী কর্মকর্তা মোঃ নজরুল ইসলাম,পেশকার মোঃ হাফিজ উদ্দিন ও আনসার ব্যাটালিয়ন এর সদস্যবৃন্দ।

সাতক্ষীরায় পৃথক ঘটনায় নারী পুরুষের মৃত্যু

সাতক্ষীরায় পৃথক ঘটনায় নারী পুরুষের মৃত্যু




আজহারুল ইসলাম সাদী, জেলা প্রতিনিধিঃসাতক্ষীরা জেলায় পৃথক ঘটনায় দু'জনের মৃত্যু হয়েছে।

জানা গেছে আজ বুধবার (১৯ আগস্ট) দুপুর ২ টার দিকে জেলার কলারোয়া উপজেলার চন্দনপুর ইউনিয়নের গয়ড়া গ্রামে গৃহবধূ আনোয়ার হোসেনের স্ত্রী সকিনা খাতুন (৩৬) প্রতিপক্ষের কুড়ালের  কোপে নিহত হয়, এসময় গুরুতর আহত হয় তার মেয়ে রাজিয়া খাতুন (১৮)। 

এলাকাবাসী জানায়, নিহত সকিনার মেয়ে জামাই বাড়ীতে থাকা নিয়ে ভাসুর ইমানুর রহমান ঝণ্টুর স্ত্রী পুত্রের সাথে বিরোধ ছিলো। এনিয়ে প্রায়ই ভাসুরের ছেলে জাহিদ ও বড় জা মর্জিনা তাকে গালিগালাজ করত। 

বুধবার দুপুরেও তাদের গালিগালাজ না করার জন্য অনুরোধ করলে উভয়ের মধ্য কথা কাটাকাটি হয়। একপর্যায়ে ধারালো অস্ত্র নিয়ে মর্জিনা ও তার ছেলে জাহিদ হাসান সকিনা এবং তার কন্যার উপর হামলা চালিয়ে এলোপাতাড়ি কুপিয়ে জখম করে। এতে ঘটনাস্থলেই সকিনার মৃত্যু হয়। আর গুরুতর আহত হয় তার কন্যা রাজিয়া খাতুন। 

খবর পেয়ে কলারোয়া থানার অফিসার ইনচার্জ (ওসি) শেখ মনীর উল গীয়াস ঘটনাস্থলে পৌছে তিন আসামীকে আটক করেন।

আটককৃতরা হলেন, মর্জিনা খাতুন, তার স্বামী ইমানুর রহমান ঝন্টু ও তার ছেলে, জাহিদ হাসান।

স্থানীয় ইউপি চেয়ারম্যান মনিরুল ইসলাম বলেন, আসামীরা পালিয়ে যাওয়ার চেষ্টা করলে তিন কিলোমিটার দূর থেকে গ্রাম পুলিশ তাদের উদ্ধার আটক করে, ইউনিয়ন  পরিষদে আটক করে রাখে।

তিনি আরো জানান, নিহত ছকিনার মেয়েকে গুরুতর আহত অবস্থায় কলারোয়া স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ভর্তি করা হয়েছে। এব্যাপারে কলারোয়া থানার অফিসার ইনচার্জ শেখ মনীর উল গীয়াস জানান মামলার প্রস্তুতি চলছে।


অাপরদিকে আজ বেলা ৩ টার সময়,  জেলার পাটকেলঘাটা থানার ভৈরব নগরে সড়ক দুর্ঘটনায় মৃত্যু  হারুনার রশিদ এর ছেলে এলাহি বক্স (৭৫)  এর মৃত্যু হয়েছে, সে ত্রিশমাইল এলাকায় তার মেয়ের বাড়ি থেকে নিজ গ্রাম বড় কাশিপুুর যাচ্ছিলো, পথিমধ্যে পেছন দিক দিয়ে একটি দ্রুতগামী ট্রাক তাকে পেছন দিক থেকে  ধাক্কা দেয়, এসময় ঘটনাস্থলেই তার মৃত্যু হয়।

পাটকেলঘাটা থানার অফিসার ইনচার্জ ওয়াহেদ মুর্শেদ জানান পুলিশ লাশ ও ঘাতক ট্রাকটি থানা হেফাজতে নিয়েছে। 

তবে ড্রাইভার পালিয়ে যেতে সক্ষম হন।

শৈলকুপায় বকাটে যুবকের মোটরসাইকেলের ধাক্কায় বৃদ্ধা নিহত

 শৈলকুপায় বকাটে  যুবকের মোটরসাইকেলের ধাক্কায় বৃদ্ধা নিহত




সম্রাট হোসেন, শৈলকুপা উপজেলা (ঝিনাইদহ) প্রতিনিধিঃঝিনাইদহের শৈলকুপায় মোটরসাইকেলের ধাক্কায় আলেয়া বেগম (৬৫) নামে এক বৃদ্ধা মহিলা নিহত হয়েছে। বুধবার (১৯ আগস্ট) দুপুরে পৌর এলাকার কবিরপুর কেন্দ্রীয় জামে মসজিদ এলাকায় এদুর্ঘটনা ঘটে। নিহত বৃদ্ধা মনোহরপুর ইউনিয়নের দামুকদিয়া গ্রামের মজিবর রহমান মিয়ার স্ত্রী।


নিহতের জামাই হাকিম সুত্রে জানা যায়, দুপুরে বৃদ্ধা জামাই বাড়ি থেকে কবিরপুর সিটি কলেজ এলাকায় মেয়ে জামাই বাড়িতে যাচ্ছিল। ঘটনাস্থলে বৃদ্ধা পৌছালে অপরদিক থেকে বেপরোয়া গতির মোটরসাইকেল চালক অজ্ঞাত যুবক তাকে ধাক্কা দেয়। স্থানীয়রা তাকে উদ্ধার প্রথমে শৈলকুপা হাসপাতালে নিয়ে আসে। কর্তব্যরত চিকিৎসক তার অবস্থার অবনতি দেখে কুষ্টিয়ার সদর হাসপাতালে রেফার্ড করে। সেখানে চিকিৎসাধীন অবস্থায় তার মৃত্যু হয়।


স্থানীয়রা জানান, কবিরপুর নতুন ব্রিজ, সিটি কলেজ পাড়া, ঝাউদিয়া আবাসন প্রকল্প এলাকা সহ আপপাশের এলাকায় কিছু উঠতি বয়সী তরুণ বেপরোয়া গতিতে মোটরসাইকেল চালিয়ে জনসাধারণকে অতিষ্ঠ করে তুলেছে। অবস্থা এমন হয়েছে যে, শিশু, বৃদ্ধ ও সাধারন মানুষেরা রাস্তায় চলাচল করতর ভয় পায়। এমন পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণ করা না গেলে ভবিষ্যতে দুর্ঘটনার হার বাড়তে পারে বলে আশংকা এলাকাবাসীর। এবিষয়ে তারা প্রশাসনের কঠোর পদক্ষেপ নিতে দৃষ্টি আকর্ষণ করেছেন।


শৈলকুপা থানার অফিসার ইনচার্জ (ওসি) ঘটনার সত্যতা নিশ্চিত করে বলেন, কিছু উঠতি বয়সী তরুন, যুবকের বেপরোয়া মোটরসাইকেল চালানোর বিষয়ে জানতাম না। তবে আজ দুর্ঘটনার পর বিষয়টি জেনেছি। এবিষয়টি নিয়ন্ত্রণ করতে কঠোর পদক্ষেপ গ্রহণ করা হবে বলে নিশ্চিত করেন।

আশাশুনি উপজেলা চেয়ারম্যান মোস্তাকিমের জন্মদিনে বিভিন্ন সংগঠনের ফুলেল শুভেচ্ছা

 আশাশুনি উপজেলা চেয়ারম্যান মোস্তাকিমের জন্মদিনে বিভিন্ন সংগঠনের ফুলেল শুভেচ্ছা




আহসান উল্লাহ বাবলু উপজেলা প্রতিনিধিঃ     আশাশুনি উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান ও উপজেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি এ বি এম মোস্তাকিম এর জন্মদিনে শুভেচ্ছা জানিয়েছেন আওয়ামী লীগ ও সহযোগী  সংগঠন। বুধবার রাতে উপজেলা চেয়ারম্যানের নিজস্ব কার্যালয় এ ফুলেল শুভেচ্ছা জানানো হয়। জন্মদিনের শুভেচ্ছা জানানোর সময় এ বি এম মোস্তাকিম বলেন আমি সারাজীবন জনগণের সেবক হিসেবে থাকতে চাই আমার চিন্তা-চেতনা ভালোবাসা সাধারণ মানুষকে ঘিরে। আমি বঙ্গবন্ধুর স্বপ্ন বাস্তবায়নের লক্ষ্যে আমৃত্যু নির্যাতিত মানুষের হয়ে কাজ করে যাব। তিনি জন্মদিনে আশাশুনি উপজেলা বাসীকে শুভেচ্ছা জানিয়েছে। এ সময় উপস্থিত ছিলেন উপজেলা আওয়ামী লীগের সাংগঠনিক সম্পাদক ও সদর ইউপি চেয়ারম্যানসহ স ম সেলিম রেজা মিলন, সাংগঠনিক সম্পাদক আব্দুস সামাদ বাচ্চু, যুবলীগের সাধারণ সম্পাদক ও জেলা পরিষদ সদস্য মহিতুর রহমান, শ্রমিক লীগের সাধারণ সম্পাদক মনিরুজ্জামান বিপুল, সদর ইউনিয়ন যুবলীগের সভাপতি তবিবুর রহমান তৈবার,যুবলীগ নেতা আনিসুর রহমান বাবলা, দিপন কুমার,পরেশ অধিকারী, সাহেব আলী, ইউপি সদস্য শাহিনুর ইসলাম, আক্তারুল, উজ্জ্বল,উপজেলা ছাত্রলীগের সভাপতি আসমাউল হোসাইন, সাংগঠনিক সম্পাদক মিঠুন ইসলাম, সরকারি কলেজ ছাত্রলীগের সাধারণ সম্পাদক তানভীর রহমান রাজ, সদর ইউনিয়ন ছাত্রলীগের সভাপতি আল আমিন হোসেন, ছাত্রলীগ নেতা জয়নাল, তারিক, শাওন, শাহারুল প্রমুখ।

কুমিল্লার মুরাদনগরে ব্যবসায়ীর ঘুষিতে ব্যবসায়ী নিহত

কুমিল্লার মুরাদনগরে ব্যবসায়ীর ঘুষিতে ব্যবসায়ী নিহত




শাহ আলম জাহাঙ্গীর, ব্যুরো চিফ, কুমিল্লা:কুমিল্লার মুরাদনগরে এক ব্যবসায়ীর ঘুষিতে অপর ব্যবসায়ী হাজী আবুল হাসেম (৭০) নিহত হয়েছেন।


আজ বুধবার (১৯ আগস্ট) দুপুরে উপজেলার কোম্পানীগঞ্জ কলেজ সুপার মার্কেটে এ ঘটনা ঘটেছে।

নিহত ব্যবসায়ী আবুল হাসেম উপজেলার ত্রিশ গ্রামের মৃত মহরম আলী মেম্বারের ছেলে।


পুলিশ নিহতদের লাশ উদ্ধার করে ময়নাতদন্তের জন্য কুমেক হাসপাতালে প্রেরণ করেছে। এদিকে ওই ব্যবসায়ীর মৃত্যুর ঘটনায় কলেজ সুপার মার্কেট বন্ধ রেখে দুইদিনের শোক পালন করা হচ্ছে। ঘটনাস্থলে অতিরিক্ত পুলিশ মোতায়েন রয়েছে।


পুলিশ ও নিহতের স্বজনরা জানায়, কোম্পানীগঞ্জ কলেজ সুপার মার্কেটের ১২ নং দোকানটি ক্রয় করা নিয়ে ব্যবসায়ী হাজী আবুল হাসেম এবং একই মার্কেটের ব্যবসায়ী আজিম উদ্দিনের মাঝে বিরোধ সৃষ্টি হয়।


আবুল হাসেম ৩৪ লাখ ৫০ হাজার টাকায় দোকানটি ক্রয় করেন। দোকানটি   আজিম উদ্দিন ক্রয় করতে না পারায় আবুল হাসেমের প্রতি চরম ক্ষুব্ধ হয়। বুধবার দুপুরে আবুল হাসেম তার ক্রয় করা দোকানের সামনে গেলে আজিম উদ্দিন ও তারসহযোগীরা ১০/১২ জন মিলে ব্যবসায়ী আবুল হাসেমকে ঘেরাও করে কিল ঘুষি দিলে সে মাটিতে লুটিয়ে পড়ে। আশপাশের ব্যবসায়ীরা তাকে উদ্ধার করে দেবিদ্বার উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে নিলে কর্তব্যরত চিকিৎসক তাকে মৃত ঘোষণা করেন।


খবর পেয়ে অতিরিক্ত পুলিশ সুপার (মুরাদনগর সার্কেল) জাহাঙ্গীর আলম ও মুরাদনগর থানার ভারপ্রাপ্ত ওসি নাহিদ আহাম্মেদ ঘটনাস্থল পরিদর্শন করেন। জাহাঙ্গীর আলম বলেন, নিহতের পরিবারের পক্ষ থেকে হত্যা মামলা প্রক্রিয়াধীন। দুই ব্যবসায়ীর বিরোধকে কেন্দ্র করে হাতাহাতির ঘটনা ঘটেছে। ময়নাতদন্তের পরই মৃত্যুর রহস্য উদঘাটন হবে, ঘটনার তদন্ত চলছে জড়িতদের বিরুদ্ধে আইনানুগ ব্যবস্থা গ্রহন করা হবে।

গ্রীণ এনভায়রনমেন্ট মুভমেন্টের উদ্যোগে মুজিব বর্ষে বৃক্ষরোপণ ও চারা বিতরণ

 গ্রীণ এনভায়রনমেন্ট মুভমেন্টের উদ্যোগে মুজিব বর্ষে বৃক্ষরোপণ ও চারা বিতরণ




মো আরিফুল ইসলাম, চট্টগ্রাম, প্রতিনিধিঃ  গ্রীণ এনভায়রনমেন্ট মুভমেন্ট, চট্টগ্রাম দক্ষিণ জেলার উদ্যোগে জাতির জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের জন্মশতবার্ষিকী উপলক্ষে বাংলাদেশ আওয়ামীলীগ বন ও পরিবেশ উপ-কমিটি ঘোষিত বৃক্ষরোপণ ও চারা বিতরণ অনুষ্ঠান আজ চট্টগ্রাম দক্ষিণ জেলার অন্তর্ভুক্ত চন্দনাইশ উপজেলার  বিজিসি ট্রাস্ট মেডিকেল কলেজ ও হাসপাতালে অনুষ্ঠিত হয়।


সংগঠনের সভাপতি এ,টি,এম রকিবুল হাসানের সভাপতিত্বে ও আইডিএ এর সাবেক সাধারণ সম্পাদক ডাঃ সেতু চৌধুরীর সঞ্চালনায় অনুষ্ঠানটি পরিচালনা করা হয়।

এতে প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন বিজিসি ট্রাস্ট মেডিকেল কলেজ ও  হাসপাতালের পরিচালক ক্যাপ্টেন (অবঃ) ডাঃ খায়ের উদ্দীন বরকত।

বিশেষ অতিথি হিসেবে ছিলেন সহকারী অধ্যাপক ও ইন্টার্ন কো-অর্ডিনেটর ডাঃ পি কে মজুমদার। এতে আরো উপস্থিত ছিলেন ডাঃ সায়েম কামাল ওয়াসি, বিজিসি ট্রাস্ট মেডিকেল কলেজ ও হসপিটালের ইন্টার্ন চিকিৎসক পরিষদ (২০২০-২১) এর সভাপতি ডাঃ মোহাম্মদ বদর-উদ-দোজা,সাধারণ সম্পাদক ডাঃ রাজেশ দাশ,সহ-সভাপতি ডাঃ দিওয়াস উপ্রিতি,ডাঃ মোহাম্মদ রিদুয়ান,ডাঃ আলিফা হাসান,ডাঃ নুসরাত শারমিন তৃষা,ডাঃ অনিন্দিতা রায় চৌধুরী, ডাঃ নাসরিন সুলতানা,

ডাঃ বাবরা মরিয়ম,ডাঃ বিবি আমেনা আলম প্রেমা,মুক্তিযুদ্ধ মঞ্চ পটিয়া উপজেলা শাখার সভাপতি মোঃরুবেল উদ্দিন,মোঃফরমান ও অনান্য ইন্টার্ন চিকিৎসক বৃন্দ।

মাগুরার শ্রীপুরে সাচিলাপুর বাজারে ভ্রাম্যমাণ আদালতে ব্যবসায়ীদেরকে জরিমানা

 মাগুরার শ্রীপুরে সাচিলাপুর বাজারে ভ্রাম্যমাণ আদালতে ব্যবসায়ীদেরকে জরিমানা




মো:রাসেল হোসেন, শ্রীপুর(মাগুরা) প্রতিনিধি :

১৯ আগষ্ট বুধবার দুপুরে মাগুরার শ্রীপুর উপজেলার সাচিলাপুর বাজারে বিশেষ অভিযান চালিয়ে দুই চাল ব্যবসায়িকে ৫ হাজার ও এক ওষুধ ব্যবসায়িকে ৩ হাজার টাকা এবং খামার পাড়া এম ওহাব মার্কেট এলাকার দুই ওষুধ ব্যবসায়িকে ৪+১=৫ হাজার টাকাসহ মোট ১৩ হাজার টাকা জরিমানা করেছে ভ্রাম্যমাণ আদালত। আদালত যৌথভাবে পরিচালনা করেন মাগুরা শ্রীপুরের সহকারী কমিশনার( ভূমি) ও এক্সিকিউটিভ ম্যাজিস্ট্রেট হাসিনা মোমতাজ ও ভোক্তা অধিকারের সহকারী পরিচালক মোহাম্মদ মামুনুর রশিদ।


ভোক্তা অধিকারের সহকারী পরিচালক ও ভ্রাম্যমাণ আদালতের বিচারক মোহাম্মদ মামুনুর রশিদ বলেন,মাগুরার শ্রীপুর উপজেলার সাচিলাপুর বাজারের দুই চাল ব্যবসায়ীর দোকানে মূল্য তালিকা না থাকায় ভোক্তা অধিকার সংরক্ষণ আইনের ৩৮ধারায় তাদেরকে ৫ হাজার টাকা অর্থদণ্ড দেওয়া হয়েছে। আর ওষুধের প্যাকেটে উৎপাদনের তারিখ না থাকায় ও মেয়াদ উত্তীর্ণ ওষুধ ঘরে রাখায় ৫১ ধারায় ওষুধের দোকানদারদের জরিমানা করা হয়েছে। তাছাড়া এ সময় বাজারের সব ব্যবসায়ীকেও সতর্ক করা হয়েছে। তিনি আরো বলেন, বাজারে পর্যাপ্ত চাল মজুদ রয়েছে। সবাইকে ন্যায্য মূল্যে চাল ক্রয়/বিক্রয় করার অনুরোধ করেছি। অধিক চাল/পণ্য ক্রয় করে মজুদ না করতে অনুরোধ করা হয়েছে সবাইকে। সব ব্যবসায়ীকে প্রকাশ্য স্থানে সঠিক মূল্য তালিকা টাঙিয়ে রাখতে বলা হয়েছে।


তিনি বলেন, ভ্রাম্যমাণ আদালত পরিচালনার খবর শুনে আগেই অনেক দোকানদার দোকান বন্ধ করে পালিয়েছেন বলেও জানান ।তিনি আরো জানান এ ধরনের অভিযান যথানিয়মে অব্যাহত থাকবে।

সিরাজগঞ্জ-১ আসনে দলীয় মনোনয়ন ফরম তুললেন - নাসিম পুএ জয়

সিরাজগঞ্জ-১ আসনে দলীয় মনোনয়ন ফরম   তুললেন - নাসিম পুএ জয়



মাসুদ রানা সিরাজগঞ্জ জেলাপ্রতিনিধিঃআওয়ামী লীগের সাবেক প্রেসিডিয়াম সদস্য ও মন্ত্রী এবং ১৪ দলের সাবেক মুখপাত্র প্রয়াত মোহাম্মদ নাসিমের ছেলে তানভীর শাকিল জয় সিরাজগঞ্জ-১ আসনে উপনির্বাচনে দলীয় মনোনয়ন ফরম সংগ্রহ করেছেন।

বুধবার দুপুরের দিকে ধানমন্ডির আওয়ামী লীগ সভাপতির কার্যালয় থেকে তিনি দলীয় মনোনয়ন ফরম সংগ্রহ করেন। তিনি আওয়ামী স্বেচ্ছাসেবক লীগের সাবেক কমিটির সহ-সভাপতি ছিলেন। তিনি ২০০৮ সালে আওয়ামী লীগের প্রার্থী হিসেবে সিরাজগঞ্জ-১ আসন থেকে এমপি নির্বাচিত হন।

দলীয় মনোনয়নপত্র সংগ্রহ করার পর জয় সাংবাদিকদের বলেন, আমার দাদা ও বাবা কাজীপুরবাসীর প্রত্যাশা পূরণে যে পথ অনুসরণ করে গেছেন, সেই অনুযায়ী কাজ করে যাব এলাকাবাসীর জন্য। আশা করি, প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা আমাকে মনোনয়ন দেবেন। আর যদি আমাকে মনোনয়ন না দেয়া হয়, তাহলে দল থেকে যাকে মনোনীত করা হবে, নৌকার জন্য তার কাজ করে যাব।

উল্লেখ্য, গত ১ জুন শ্বাসকষ্ট নিয়ে হাসপাতালে ভর্তির পর করোনাভাইরাস পজিটিভ আসে সাবেক স্বাস্থ্যমন্ত্রী মোহাম্মদ নাসিমের। ৪ জুন ভোরে বাংলাদেশ স্পেশালাইজড হাসপাতালের আইসিইউতে চিকিৎসাধীন অবস্থায় ব্রেন স্ট্রোক হয় তার। তিনি ১৩ জুন মারা যান।

মাদকাসক্তি ও আমাদের যুব সমাজ

 মাদকাসক্তি ও আমাদের যুব সমাজ

 



সময়ের পরম্পরায় আলোকিত সমাজ গড়ে তোলার প্রত্যয়ে যারা নিজেদেরকে বিলিয়ে দেয়,উদ্দীপ্ত এক রেনেসাঁময় সংগীত বিনির্মানের ভার যাদের উপর নির্ভর করে তারা আমাদের গৌরবের যুব সমাজ। যারা অদম্য, সৌন্দর্যপিপাসু,মন যাদের বিশ্বাসের কোলাহলে পায়তারা করে, যারা রচনা করবে ভবিষ্যতের রঙিন স্বপ্ন, আগমনী জয়গান যারা গাইবে এরাই হলো মানবতার প্রাণ। কিন্তু দুর্ভাগ্যজনক হলো এ অদম্য জীবনীশক্তিগুলো আজ সর্বনাশা মাদকের করাল গ্রাসে বিলীন হতে বসেছে। বিশ্বায়নের এ যুগে এখন শুধু আমাদের এই বাংলাতেই নয় সমগ্র বিশ্ববাসী এর ছোবল থেকে মুক্তি চায়। তৃতীয় বিশ্বের উন্নয়নশীল দেশ হিসেবে কয়েকবছর আগেও যেখানে বাংলাদেশে কোনো সমস্যার সৃস্টি করেনি  সেখানে সাম্প্রতিক সময়ে এটি ভয়াবহ রুপ ধারণ করেছে। যার সর্বগ্রাসী আক্রমণে যুব সমাজ আজ বিপন্ন ও পর্যদুস্থ। আমাদের দেশে এখন গাজা, আফিম, ইয়াবা, ফেনসিডিল -সহ অন্যান্য প্রাচীন নেশা জাতীয় সহজলভ্য হলেও 'ইয়াবা ' আজ সবকিছুকে ছাপিয়ে গেছে। তথ্য -প্রযুক্তির এই মাহেন্দ্রক্ষণ -এর মাত্রাকে করে দিচ্ছে তীব্র থেকে থেকে আরও তীব্রতর। যার ফলে ধ্বংস হচ্ছে সমাজ, ধ্বংস হচ্ছে মানবতা।ধর্মীয় কু-সংস্কার,বেকারত্ব, সন্ত্রাস এবং ক্রমবর্ধমান জনসংখ্যার মতো সামাজিক সমস্যার সাথে যুক্ত হচ্ছে মাদক সমস্যা। হতাশা, মানসিক অবসাদ, ধর্মীয় ও নৈতিক শিক্ষার অভাব, অজানা বিষয়ের প্রতি কৌতূহল এবং মাদকদ্রব্যের সহজলভ্যতা মাদকাসক্তির অন্যতম কারণ হিসেবে বিবেচিত হয়।

 পরিবার ও সমাজ উভয় ক্ষেত্রেই মাদকাসক্তির ফলে সৃস্টি হয় উদ্বেগ, উৎকন্ঠা ও অশান্তি। তরুনরা নেশার টাকা যোগাড় করতে যেকোনো অপরাধমূলক কর্মকাণ্ডে নিজেকে লেলিয়ে দেয়,যা তরুণদের মেধা,মনন এবং উদ্যমত্তাকে ধ্বংস করে বিনস্ট করে দিচ্ছে তাদের সুপ্ত প্রতিভা, সুস্থ চিন্তাধারা এবং অপরাজয়ী মানসিকতা। বর্তমান যুব সমাজকে এই ধ্বংসের হাত থেকে রক্ষা করতে প্রয়োজন আইন প্রণয়ন ও যথাযথ বাস্তবতায়নের পাশাপাশি সেমিনার ও বিভিন্ন কর্মসূচী গ্রহণ। তরুণদের মধ্যে নৈতিকতা ও সচেতনতা বৃদ্বি করে শিক্ষামূলক কর্মসূচির আয়োজন এখন সময়ের দাবি। মাদকের অপব্যবহারের বিরুদ্ধে এই মুহুর্তে ইতিবাচক দৃস্টিভঙ্গি নিয়ে এগিয়ে না আসলে দেশের যুব সমাজের ধ্বংস অনিবার্য।


লেখক : 

 কাওসার মিয়া 

শিক্ষার্থী, ইসলামের ইতিহাস ও সংস্কৃতি, জগন্নাথ বিশ্ববিদ্যালয়

বালিদিয়া শিকদারের মোড়ে রাস্তার বেহাল অবস্থা।মরন ফাঁদে পড়ছে এলাকাবাসী

 বালিদিয়া শিকদারের মোড়ে রাস্তার বেহাল অবস্থা।মরন ফাঁদে পড়ছে এলাকাবাসী




মোঃকুতুবুল আলম, মহম্মদপুর(মাগুরা)মহম্মদপুর উপজেলা বালিদিয়া গ্রামের শিকদারের মোড়ে রাস্তার বেহাল অবস্থা।মরন ফাঁদে পড়েছে এলাকাবাসী।অনেক দিন ধরে রাস্তার এমন বেহাল অবস্থা কিন্তু আজো হয়নি সংস্কারের  কোন ব্যাবস্থা।এলাকাবাসী বলেন প্রায় রাস্তাটিতে ভ্যান,ট্রাক,নসিমন চলাচলের দুঘটনা।আন্য দিকে যাএীরা চরম দুভোগে ভুগছে।এলাবাসী বলেন জনপ্রতিনিধি ও প্রশাসনের  দৃষ্টিতে রাস্তাটি জরুরি ভাবে  মেরামতের করতে বলা হয়েছে।এক দিকে এলাকাবাসী উপকৃত হবে অন্য দিকে ভ্যান,আটো চলাচলের জন্য সুবিদা  হবে।

হবিগঞ্জে গাছে গাছে ঝুলছে পাকা তাল ঘরে ঘরে পিঠা উৎসব

হবিগঞ্জে গাছে গাছে ঝুলছে পাকা তাল ঘরে ঘরে পিঠা উৎসব




লিটন পাঠান, হবিগঞ্জ জেলা প্রতিনিধি:ঐ দেখা যায় তাল গাছ ওই আমাদের গাঁ ছোট বেলায় এই কবিতা পড়া থেকে বাদ পড়েনি কেউ। মৌসুমী ফল তালের রসের পিঠা আমাদের দেশের মানুষের কাছে খুবই জনপ্রিয়। তাল গাছের ডাল ও পাতা দিয়ে হাতপাখা ফুলের টব বাজারের থলে ও অনেক সুন্দর দ্রব্য তৈরী করা যায়। ভাদ্র মাসে গাছের তলায় ঝইরা পড়ে তাল পাকা তালের মৌ-মৌ গন্ধে করে যে মাতাল। তালের পিঠা বেজায় মিঠা খেতে ভারি মজা ভাদ্র মাসের তালের পিঠা, খায় যে রাজা-প্রজা বাংলা সাহিত্যে তাল নিয়ে অসংখ্য কবিতা, ছড়া ও গান রচিত হয়েছে। ভাদ্র মাস যেন বাঙালী জীবনের পাকা তাল ও তাল পিঠার মাস।


কথায় বলে ভাদ্রের তাল পাকা গরমে সম্ভবত এ মাসটিতেই তাল পাকে তাই এ গ্রাম বাংলা জুড়ে এই কথার প্রচলন দীর্ঘদিন ধরে। হবিগঞ্জ জেলার মাধবপুর উপজেলায় গাছে গাছে এখন পাকা তালের মৌ মৌ গন্ধ মুখরিত করছে চারদিক। আর বাড়ীতে বাড়ীতে চলছে তাল পিঠা তৈরীর উৎসব। চলছে জামাই ও আত্মীয় স্বজন আপ্যায়ন খাদ্য রসিক বাঙালি রসনা বিলাসের জন্য এ মাসেই তাল রসে তৈরি পিঠাসহ মুখরোচক নানা খাদ্য আয়োজনে ব্যস্ত থাকেন। খুব ধৈর্য নিয়ে নারীরা তালের আঁশ থেকে নির্যাস বের করে তৈরি করছেন তালের চিতল পিঠা, কাঁঠাল পাতায় ভরে কলকি পিঠা তাল পিঠা তাল বড়া তাল তেল তালরুটি তালের পায়েস, কলাপাতায় তাল পিঠা তালের রসভরি সহ হরেক রকমের পিঠাপুলি ইত্যাদি।


এক সময় হবিগঞ্জ জেলা উপজেলার প্রত্যন্ত জনপদে প্রচুর তালগাছ দেখা যেত। কিন্তু সময়ের বিবর্তনে তালগাছ অনেকটাই বিলুপ্তির পথে। এককালে এ সময়ে গ্রামের প্রতিটা ঘরে ঘরে তাল পিঠা বানানোর ধূম পড়ে যেত। সারারাত ধরে পিঠা তৈরি করে সকালে তা প্রতিবেশিদের মাঝে বিলানো হত সেই পিঠা। সবাই আনন্দচিত্তে তৃপ্ত হত সে পিঠা খেয়ে। গ্রাম বাংলার কোনখানে এসব মন ভুলানো দৃশ্য এখন খুব একটা চোখে পড়েনা। তবে নির্দ্বিধায় বলা যায় কালের বিবর্তনে হারিয়ে যাচ্ছে গ্রাম বাংলার অতি পরিচিত সুস্বাদু এসব তাল পিঠা ও সেই সাথে এর ঐতিহ্যও।


গাছতলায় গিয়ে দল বেঁধে তাল কুড়ানো, সেই তালের রস নিয়ে পিঠা বানানো, তৈরি পিঠা নিয়ে বাড়ি বাড়ি বিলানোর চিত্র এখন যেন স্মৃতির পাতায় বন্দি হতে চলেছে। এ ব্যাপারে মনতলা শাহজালাল সরকারি কলেজের প্রভাষক আক্তার হোসাইন জানান, তার বাড়ীতে প্রাচীন একটা তাল গাছ আছে। বড় জাতের এই তাল খুবই সুস্বাদু। তাল পাকলেই আত্মীয় স্বজনদের বাড়ীতে পাঠানোর ঐতিহ্য এখনও আছে তার পরিবারে। আর প্রতিবেশিরাও পাকা তাল নিয়ে পিঠা তৈরী করে খায়। পূর্ব মাধবপুর গ্রামের মানিক মিয়া জানান, জ্যৈষ্ঠের শুরুতেই এখন শাস যুক্ত প্রায় সব তাল বিক্রি করে দেয়া হয় তাই পাকা তাল খাওয়ার সুযোগ খুব একটা হয়না। শাস ব্যবসায়ীরা পুরো গাছ ধরে ক্রয় করে নিয়ে যায়।


এক সময় তাল পাকানো হত, বোন ভাগ্নির বাড়ীতে তা পাঠানো হত। বেশির ভাগ তাল বাগান মালিকরা শাস বিক্রি করে থাকেন। তাই বাজারে ৪০ থেকে ৫০ টাকার নিচে ভালো পাকা তাল পাওয়া যায়না। তবে বেশি বেশি তালগাছ লাগালে গ্রাম বাংলার ঐতিহ্য ফিরিয়ে আনা সম্ভব হবে। এ ব্যাপারে উপজেলা কৃষি কর্মকর্তা সাইফুল ইসলাম জানান, তাল গাছ শুধু প্রকৃতির ভারসাম্য রক্ষা করে না বরং বজ্রপাত নিরোধক হিসেবেও কাজ করে। তাই বেশি করে তাল গাছ লাগানো হলে এ দেশ আরো সমৃদ্ধশীল হবে এবং কাঠের চাহিদা পূরণ করে।

মাধবপুরে একসঙ্গে ৩ সন্তানের জন্ম দেন ১ জননী

মাধবপুরে একসঙ্গে ৩ সন্তানের জন্ম দেন ১ জননী




লিটন পাঠান, হবিগঞ্জ জেলা প্রতিনিধি:হবিগঞ্জের মাধবপুর উপজেলার শিয়ালউড়ি গ্রামের রহিমা বেগম নামের এক নারী অস্ত্রপাচার ছাড়াই একসঙ্গে তিনটি সন্তান জন্ম দিয়েছেন। আজ বুধবার(১৯ আগস্ট) সকালে উপজেলার ধর্মঘর ইউনিয়ন স্বাস্থ্য পরিবার কল্যাণ কেন্দ্রে তিনি সন্তান গুলো প্রসব করেন। তিন সন্তান মেয়ে। রহিমা বেগম উপজেলার ধর্মঘর ইউনিয়নের শিয়ালউরি গ্রামের আব্দুস সালামের স্ত্রী। এক সঙ্গে তিন সন্তান জন্মের খবর গ্রামে ছড়িয়ে পরলে নারী-পুরুষ তার বাড়িতে ভিড় করেন।


তিন সন্তান শারীরিক অবস্থা ভালো। মাও সুস্থ্য আছেন বলে জানিয়েছেন মা-মনি প্রজেক্টের প্যারামেডিক্স নাইস খাতুন। তিনি বলেন, সিজার ছাড়াই তার হাতেই একে একে তিনটি সন্তান প্রসব হয়েছে। পরিবারটি খুবই গরীব। তিন সন্তানের মধ্যে ১ম সন্তানটির ওজন ১ কেজি ৫০০ গ্রাম, ২য় সন্তানটির ওজন ১ কেজি ৭০০ গ্রাম ও ৩য় সন্তানটির ওজন ১ কেজি ৩০০ গ্রাম। তাদের শিশু ডাক্তার দেখানো পরামর্শ দেওয়া হয়েছে। কিন্তু তারা টাকা না থাকার কারনে ডাক্তার না দেখিয়ে বাড়িতে চলে গেছে।


নবজাতক তিনটির বাবা আব্দুস সালাম বলেন, তার ঘরে ৪ বছরের আরেকটি ছেলে সন্তানটি রয়েছে। মা-মনি প্রজেক্টের প্যারামেডিক্স নাইস খাতুন জানান, পরিবারটি খুবই গরীব ঔষধ কিনে খাওয়ার টাকা পর্যন্ত নেই। সরকারিভাবে যতটুকু সম্ভব ঔষধ দেওয়া হয়েছে।

সিঙ্গাপুরের প্রবাসীদের কাছে তুহিন মিয়ার মানবিক সাহায্যের আবেদন

সিঙ্গাপুরের প্রবাসীদের কাছে তুহিন মিয়ার মানবিক সাহায্যের আবেদন


  মোঃনাইম শেখ, সিঙ্গাপুর প্রতিনিধি:জনাব তুহিন মিয়া, বয়স ৩০ বছর, সিঙ্গাপুরে একটি প্রতিষ্ঠানে কর্মরত ছিলেন। অত্যন্ত দুর্ভাগ্যবশতভাবে গত ২৭ জুলাই ২০২০, তিনি তিনি মাথা ঘুরে রুমে পরে যান। তৎক্ষণাৎ উনাকে Tan Tock Seng Hospital এ পাঠানো হয় এবং হাসপাতাল থেকে জানানো হয় উনার মস্তিষ্কে রক্তক্ষরণ হয়েছে। কিছুদিন পরে আরও জানানো হয় উনার রক্ত কণিকা তৈরি করার ক্ষমতা নষ্ট হয়ে গেছে। এই কারনে তার রক্ত জমাট বাধছে না এবং এই কারনেই তার  মস্তিষ্কে রক্তক্ষরণ হয়েছে।


এই অবস্থায় তার সুস্থ থাকার জন্যে সারা জীবন কিছু দিন পর পর  তার শরীরে নুতন রক্ত দিতে হবে (blood transfusion)। উনার কোম্পানি ইনসিওরেন্স থেকে ইতিমধ্যে সব টাকা খরচ হয়ে গেছে এবং কোম্পানি ইনসিওরেন্স উনার আর চিকিৎসার খরচ বহন করতে পারবেন না। ইতিমধ্যে উনাকে বাংলাদেশে স্থায়ীভাবে পাঠানোর সিদ্ধান্ত হয়েছে। 


উনার এই শারীরিক অবস্থার কারণে, সুস্থ হওয়ার জন্য পরবর্তীতে বাংলাদেশে চিকিৎসা প্রয়োজন এবং উনার পরিবারের পক্ষে এই খরচ বহন করা সম্ভব না। এমতাবস্থায়, উনার পরিবার সিঙ্গাপুরে বসবাসরত সকল প্রবাসী ভাইদের-বোনদের আর্থিক সাহায্যের জন্য সকলের একান্ত সহযোগিতা কামনা করেছেন।  


জনাব তুহিন মিয়াকে সাহায্য পাঠানোর ব্যাংক এর নাম এবং নাম্বার নিন্মবর্ণিতঃ


নামঃ Tuhin Mia 

ব্যাংকঃ  POSB Savings Account 

একাউন্ট নাম্বারঃ: 442-95745-2


আপনাদের সকলের মানবিক সাহায্য জনাব তুহিন মিয়ার পরবর্তী চিকিৎসার খরচ বহন করার জন্য একান্ত প্রয়োজন।


যশোরে মাদ্রাসা ছাত্রীকে ধর্ষণের অভিযোগে অভিযুক্ত আটক

যশোরে মাদ্রাসা ছাত্রীকে ধর্ষণের অভিযোগে অভিযুক্ত আটক


মোরশেদ আলম,যশোর ভ্রাম্যমাণ প্রতিনিধিঃযশোর শহরের বারান্দিপাড়া এলাকায় ১৩ বছরের এক মাদ্রাসা ছাত্রীকে ধর্ষণের অভিযোগ উঠেছে অপর এক মাদ্রাসা ছাত্রের বিরুদ্ধে। পুলিশ এ ঘটনায় মামলা নিয়েছে এবং অভিযুক্ত মাদ্রাসা ছাত্র আবু রায়হানকে আজ ভোরে আটক করেছে।

আটক আবু রায়হান বারান্দিপাড়া বায়তুল মামুদ মাদ্রাসার হেফজ্ব খানার ছাত্র এবং সদর উপজেলার রহেলাপুর গ্রামের শহিদুল ইসলামের ছেলে।


যশোর কোতোয়ালী থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা( ওসি) মোহাম্মাদ মনিরুজ্জামান জানান, নির্যাতিত মেয়েটি শহরের একটি মাদ্রাসার ৮ম শ্রেণির ছাত্রী। ওই মেয়ের মা বারান্দিপাড়া বায়তুল মামুদ মাদ্রাসার রান্নার কাজ করেন। সেই সুবাদে আবু রায়হানের সাথে ওই পরিবারের সম্পর্ক তৈরি হয়। গত ৯ আগস্ট বিকেলে মেয়েটির মা যখন মাদ্রাসায় রান্নার কাজ করছিল তখন আবু রায়হান তাদের বাড়িতে যায় এবং ওই মেয়েটিকে জোরপূর্বক ধর্ষণ করে। প্রথমে মেয়ে ভয়ে বিষয়টি কাউকে না জানালেও পরবর্তীতে সে তার মাকে জানায়। এরপর গতকাল সোমবার রাতে মেয়েটির মা থানায় অভিযোগ দায়ের করেন।

তার অভিযোগ পেয়ে আজ ভোরে মাদ্রাসা থেকে আবু রায়হানকে আটক করা হয়। এছাড়া আজ দুপুরে যশোর জেনারেল হাসপাতালে মেয়েটির ডাক্তারি পরীক্ষা করানো হয়েছে। এ ঘটনায় মামলা হয়েছে বলে জানান ওসি।

এদিকে নির্যাতিত মেয়েটির মা জানিয়েছেন, তার মেয়েকে জোরপূর্বক ধর্ষণ করা হয়েছে। তবে এ বিষয়ে এখনই তিনি কিছু বলতে চান না।


দারুল আরকাম মাদ্রাসার ২লক্ষাধিক শিক্ষার্থীর জীবন এখন হতাশার মধ্যে অতিবাহিত হচ্ছে

দারুল আরকাম মাদ্রাসার ২লক্ষাধিক শিক্ষার্থীর জীবন এখন  হতাশার মধ্যে অতিবাহিত হচ্ছে


আব্দুর রাজ্জাকঃদারুল আরকাম ইবতেদায়ী মাদ্রাসা প্রকল্প' ফাইল বর্তমানে ধর্ম মন্ত্রণালয়ের সচিবালয়ে রয়েছে, এ প্রকল্প ফাইলের পর্যালোচনা সভা ঈদের আগে হওয়ার কথা থাকলেও এখন পর্যন্ত তা অনুষ্ঠিত হয়নি। প্রকল্পটি দ্রুত বাস্তবায়ন ও ২০২০ খ্রিঃ এর জানুয়ারি থেকে শিক্ষক-শিক্ষিকাগণের বেতন-ভাতা পরিশোধের বিষয়ে যথাযথ কর্তৃপক্ষ থেকে এ পর্যন্ত তেমন কোনো আশ্বাসও পাওয়া যাচ্ছেনা ।


এদিকে ২০২০ খ্রিঃ শিক্ষাবর্ষ প্রায় শেষের দিকে।  আর প্রস্তাবিত প্রকল্পে যেহেতু প্রকল্প মেয়াদ প্রস্তাবনা করা হয়েছে  'জানুয়ারি ২০২১ খ্রিঃ থেকে ডিসেম্বর ২০২৫ খ্রিঃ পর্যন্ত'। তাই সার্বিক পরিস্থিতি বিবেচনায় শিক্ষক-শিক্ষিকাগণ, ভূমি দাতাগণ ও ম্যানেজিং কমিটিসহ অভিভাবকগণ হতাশার মধ্যে রয়েছেন। 


এমতাবস্থায়, দারুল আরকাম ইবতেদায়ী মাদ্রাসার শিক্ষক-শিক্ষিকাগণ, ভূমিদাতাগণ ও ম্যানেজিং কমিটি এবং প্রায় দুই লক্ষাধিক শিক্ষার্থী ও তাদের অভিভাবকদের পক্ষে প্রতিনিধিত্বকারী সংগঠন ``বাংলাদেশ দারুল আরকাম শিক্ষক কল্যাণ সমিতি`` দারুল আরকাম মাদ্রাসা প্রকল্পটি দ্রুত বাস্তবায়ন ও শিক্ষক-শিক্ষিকাগণের ন্যায্য অধিকার আদায়ে, ইফা মহাপরিচালক মহোদয় এবং  ইফা গভর্নর মহোদয়গণ ও যথাযথ ঊর্ধ্বতন কর্তৃপক্ষের পরামর্শের ভিত্তিতে নিয়ম তান্ত্রিক কার্যক্রম চালিয়ে যাচ্ছে।


এ ধারাবাহিকতায়, কেন্দ্রীয় কমিটি কয়েকটি কর্মসূচি গ্রহণ করেছে:-

১) 'দারুল আরকাম ইবতেদায়ী মাদ্রাসা প্রকল্প' দ্রুত অনুমোদনের জন্য ধর্ম মন্ত্রণালয়, পরিকল্পনা মন্ত্রণালয় ও অর্থ মন্ত্রণালয়সহ সংশ্লিষ্ট কর্তৃপক্ষের সাথে সার্বিক বিষয়ে যোগাযোগ রক্ষা করা ।

(যা চলমান রয়েছে, এবং সময়মতো অগ্রগতির বিষয়ে জানানো হবে ইনশাআল্লাহ)


২) মাননীয় প্রধানমন্ত্রীর সহিত সাক্ষাতে, দারুল আরকামে অধ্যায়নরত ০২ লক্ষাধিক শিক্ষার্থীর শিক্ষা জীবন রক্ষা, মাননীয় প্রধানমন্ত্রীর প্রতিষ্ঠিত দারুল আরকাম মাদ্রাসায় সাধারণ সরল-সহজ মুসলিম ভাই-বোনদের ভূমিদান এবং দানশীল মুসলিম ভাই-বোনদের অনুদানের মাধ্যমে প্রতিষ্ঠানের উল্লেখযোগ্য অবকাঠামো নির্মাণসহ যাবতীয় বিষয় সমূহ মাননীয় প্রধানমন্ত্রীকে অবহিত করা ।


(করোনা ভাইরাস কালীন মাননীয় প্রধানমন্ত্রীর সহিত সরাসরি সাক্ষাৎ কঠিন হলেও যথাযথ কর্তৃপক্ষের মাধ্যমে মাননীয় প্রধানমন্ত্রীকে অবহিত করার প্রচেষ্টা চলমান রয়েছে)


৩) কর্মরত ২০২০ জন শিক্ষক-শিক্ষিকার জানুয়ারি ২০২০ খ্রিঃ থেকে অদ্যাবধি  বকেয়া বেতন পাওয়ার ন্যায্য অধিকার আদায়ে সার্বিক প্রচেষ্টা অব্যাহত রাখা ।


৪) ইসলামের ইতিহাসে মাননীয় প্রধানমন্ত্রী কর্তৃক নজিরবিহীন; সারাদেশে একসাথে ১০১০ (এক হাজার দশ) টি দারুল আরকাম মাদ্রাসা প্রতিষ্ঠার বিষয়ে জনপ্রতিনিধিগণ, গণমাধ্যম মিডিয়া, রাজনৈতিক নেতৃবৃন্দ, সুশীল সমাজ ও ওলামায়ে কেরামসহ সমাজের সকল শ্রেণীর মানুষের মাঝে দারুল আরকামের বিষয় তুলে ধরে, ২০২০ খ্রিঃ এর জানুয়ারি থেকে ধারাবাহিক প্রকল্প বাস্তবায়নের প্রচেষ্টা অব্যাহত রাখা ।

বিশেষ করে প্রতিটি এলাকার মাননীয় সংসদ সদস্যগণ এবং মন্ত্রী মহোদয়গণসহ জনপ্রতিনিধিগণের মাধ্যমে মাননীয় প্রধান মন্ত্রীর সুদৃষ্টি কামনা করা।


৫) ২০২০ খ্রিঃ শিক্ষাবর্ষ থেকে ধারাবাহিক দারুল আরকাম প্রকল্প বাস্তবায়নের দাবিতে প্রয়োজনে পরামর্শ ভিত্তিক রাজপথের কর্মসূচী ঘোষণা করা হবে ।


৬) প্রয়োজনীয় ক্ষেত্রে সার্বিক বিষয় বিবেচনা করে আইনি সহায়তা গ্রহণ করা ।


৭) আগামী ২৬/০৮/২০২০ তারিখের মধ্যে সকল দারুল আরকাম ইবতেদায়ী মাদ্রাসার ম্যানেজিং কমিটির তালিকা কেন্দ্রীয় কমিটির নিকট হস্তান্তর করা ।


৮) আগামী ২৬/০৮/২০২০ তারিখের মধ্যে সকল দারুল আরকাম ইবতেদায়ী মাদ্রাসার ভূমি দাতা/ সভাপতি কর্তৃক মাননীয় প্রধানমন্ত্রী বরাবর আবেদন পত্র কেন্দ্রীয় কমিটির নিকট হস্তান্তর করা ।


৯) বাংলাদেশ দারুল আরকাম শিক্ষক  কল্যাণ সমিতির প্রত্যেক জেলা কমিটির তালিকা, কেন্দ্রীয় কমিটি কর্তৃক সরবরাহকৃত নির্ধারিত ছকে পূরণ করে/প্রয়োজনীয় ক্ষেত্রে নির্ধারিত ছক অনুযায়ী পুর্ণঃগঠন করে আগামী ২৩/০৮/এ ২০২০ খ্রিঃ মধ্যে কেন্দ্রীয় কমিটির ইমেইলে-

 darularqambd2020@gmail.com  -এ সফট কপি প্রেরণ করা এবং আগামী ২৬/০৮/২০২০ তারিখের মধ্যে হার্ড কপি কেন্দ্রীয় দফতরে জমা করা।


১০) কেন্দ্রীয় কমিটি কর্তৃক পরিচালিত কার্যক্রমের হালনাগাদ তথ্য জেলা নেতৃবৃন্দকে অবহিত করণ ও পরবর্তী করণীয় নির্ধারণে আগামী ২৬ আগস্ট ২০২০ খ্রিঃ রোজ বুধবার, সকাল দশটায় ঢাকায় জরুরী মতবিনিময় সভা অনুষ্ঠিত হবে।

এতে প্রত্যেক জেলার সভাপতি ও সেক্রেটারি/জেলা প্রতিনিধিগণকে  জোন দায়িত্বশীলগণের সহিত সমন্বয় করে, নির্ধারিত নিয়ম মেনে উপস্থিত থাকার জন্য বিশেষভাবে অনুরোধ করা হল।


দারুল আরকাম ইবতেদায়ী মাদ্রাসার সকল শিক্ষক-শিক্ষিকাগনের বিগত জানুয়ারি ২০২০ থেকে বকেয়া বেতন-ভাতা পরিশোধ ও প্রায় দুই লক্ষাধিক সুবিধাবঞ্চিত শিক্ষার্থীদের শিক্ষাজীবন রক্ষা এবং ইসলামিক ফাউন্ডেশন এর মাধ্যমে বাস্তবায়িত ও মাননীয় প্রধানমন্ত্রী কর্তৃক প্রতিষ্ঠিত ১০১০ টি দারুল আরকাম ইবতেদায়ী মাদ্রাসা যথানিয়মে চলমান রাখাসহ সকল দাবি আদায়ের লক্ষে দারুল আরকাম শিক্ষক-শিক্ষিকাগণের একান্ত সহযোগিতা ও উপস্থিতি জরুরী মনে করছি।


ধন্যবাদান্তে

কেন্দ্রীয় কমিটির পক্ষে-

জয়নুল আবেদীন

সভাপতি,

জাকির হোসেন গোপালগঞ্জী

মহাসচিব,

বাংলাদেশ দারুল আরকাম শিক্ষক কল্যাণ সমিতি।


সার্বিক যোগাযোগ:

জনাব হাবিবুর রহমান, সিনিয়র সহ-সভাপতি

মোবাইল নং: 01723168890

জনাব শরীফ মুহাম্মদ নাজমুল হুদা, সিনিয়র সহ-সভাপতি

মোবাইল নং: 01712367932

জনাব মোঃ ইউনুস খান, সহ-সভাপতি

মোবাইল নং: 01716329138

জনাব ফাইজুল হাসান, সহ-সভাপতি

মোবাইল নং: 01729167836

জনাব রাশেদুল ইসলাম, আইসিটি বিষয়ক সম্পাদক

মোবাইল নং: 01625081939

জনাব আবুল খায়ের নোমানী, প্রশিক্ষণ সম্পাদক

মোবাইল নং: 01818228133

জনাব মুনিরুজ্জামান, অর্থ সম্পাদক

মোবাইল নং: 01739124466

জনাব আহমেদ কবির,দপ্তর সম্পাদক।

ঝিনাইদহে ফেন্সিডিল সহ মাদক ব্যবসায়ী আটক

ঝিনাইদহে ফেন্সিডিল সহ মাদক ব্যবসায়ী আটক




খোন্দকার আব্দুল্লাহ বাশার,ঝিনাইদহ জেলা প্রতিনিধিঃঝিনাইদহ জেলা গোয়েন্দা শাখা ডিবি পুলিশের ওসি মোঃ আনোয়ার হোসেন জানান পুলিশ সুপার জনাব মোঃ হাসানুজ্জামান পিপিএম এর দিক নির্দেশনায় গোপন সংবাদের ভিত্তিতে ১৮ আগষ্ট মঙ্গলবার  ঝিনাইদহ ডিবি পুলিশের একটি  চৌকস দল মাদক বিরোধী অভিযান পরিচালনাকালে আসামি মোঃ খায়রুল ইসলাম ওরফে আসাদুল (৩০),পিতা মোঃ নুর বক্স,সাং- মাথাভাঙ্গা পাড়া,থানা- মহেশপুর,জেলা- ঝিনাইদহ ৪৭৫ (চারশত পচাত্তর) বোতল ফেন্সিডিল সহ মহেশপুর থানাধীন বালিনগর এলাকা থেকে আটক  করে।মাদক ব্যাবসায়ীর মাদক দ্রব্য নিয়ন্ত্রণ আইনে মামলা দায়ের করা হয়েছে বলে পুলিশ জানান।

ভোগান্তি আর হয়রানি রোধে মোংলায় পুলিশ বিতরণ করলো শিক্ষানবিশ ড্রাইভিং লাইসেন্স

 ভোগান্তি আর হয়রানি রোধে মোংলায় পুলিশ বিতরণ করলো  শিক্ষানবিশ ড্রাইভিং লাইসেন্স




মোঃএরশাদ হোসেন রনি, মোংলাঃ  মোংলায় পুলিশের সহায়তায়  শিক্ষানবিশ ড্রাইভিং লাইসেন্স পেলেন দুই শতাধিক মোটরজান মালিক। বুধবার সকালে মোংলা থানায়  ওইসব লাইসেন্স আবেদন কারীদের হাতে তুলেদেন মোংলা উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান আবু তাহের হাওলাদার ও থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা ইকবাল বাহার চৌধুরী।

  এসময় উপস্থিত ছিলেন মোংলা থানার পুলিশ পরিদর্শ( তদন্ত) তুহিন মন্ডল, মোংলা উপজেলা পরিষদের ভাইস চেয়ারম্যান মোঃ ইকবাল হোসেন, মোংলা থানার সেকেন্ড অফিসার মোঃ জাহাঙ্গীর আলম,মিঠাখালী ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান ইসরাফিল হাওলার,মোংলা থানার কয়েকজন কর্মকর্তা ও মোংলায় কর্মরত বিভিন্ন ইলেকট্রনিক ও প্রিন্ট মিডিয়ায় সাংবাদিকরা।


লাইসেন্স বিতরন অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি  হিসেবে বাগেরহাট জেলা পুলিশ সুপারের উপস্থিত থাকার কথা থাকলেও দাপ্তরিক কাজে মোংলায় আসতে পারেননি তিনি। এসময় শিক্ষানবিশ লাইসেন্স এর জন্য আবেদনকারীদের উদ্যেশে মোংলা উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান আবু তাহের হাওলাদার বলেন, মোংলা থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা ইকবাল বাহার চৌধুরীর ভালো উদ্যোগ নেয়ার   কারনে লাইসেন্স গ্রহনে ভোগান্তী আর হয়রানী থেকে রক্ষা পাবে মোংলা বাসী।


আবেদনকারীদের হাতে শিক্ষানবিশ ড্রাইভিং লাইসেন্স হস্তান্তর শেষে মোংলা থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা ইকবাল বাহার চৌধুরী জানান, সাতশ আবেদনকারী আমাদের কাছে ফরম জমা দিয়েছেন। আমরা বাগেরহাট বিআরটিতে সকল প্রক্রিয়া শেষ করে দুদফায় ২৭০ জনকে লাইসেন্স হস্তান্তর করেছি। পর্যায় ক্রমে বাকী সবাইকে প্রাপ্তি সাপেক্ষে লাইসেন্স হস্তান্তর করা হবে। এসময় পুলিশের এ কর্মকর্তা আরো বলেন, মুলত সড়ক পথে দূর্ঘটনা রোদে এ ব্যবস্থা নেয়া হয়েছে।#

নাটোর সিংড়ায় সড়ক দুর্ঘটনায় নিতহ ১

 নাটোর  সিংড়ায় সড়ক দুর্ঘটনায় নিতহ ১




রাজশাহী ব্যুরোঃনাটোর সিংড়ায় ৩ নং ইটালি ইউনিয়ন কুমগ্রামে এক সড়ক দুর্ঘটনাটি   ঘটে।  ড্রাইভার জই (৫৫) নামে এক ব্যাক্তি নিহত হয়  খবর পাওয়া যায়।

নিহত জই ১২ নং রামানন্দ খাজুরা ইউনিয়ন ৯ নং ওয়ার্ড বিনগ্রামের বাসিন্দা।

প্রত্যক্ষদর্শীরা যানান, আনুমানি আজ সকাল ৮ টার দিকে এ দুর্ঘটনা ঘটে। নিহত জই একজন অটো ড্রাইভার।


প্রতিদিনের মতো জিবিকার তাগিতে আজও বের হয়েছিলেন অটো নিয়ে। তিনি মালামালসহ যাত্রী নিয়ে কুমগ্রামে নামিয়ে দিয়ে আসার পথে নিয়ন্ত্রণ হারিয়ে রাস্তার পাশে থাকা ডোবায় পরে যায়।

স্থানীয় লোকজনের সহযোগীতায় তাকে উদ্ধার করা হলেও ঘটনাস্থলেই মারা যান তিনি।

পিরোজপুরের মঠবাড়িয়ায় পূর্ব শত্রুতার জের ধরে কলেজ ছাত্রের কব্জি কাটল

 পিরোজপুরের মঠবাড়িয়ায় পূর্ব শত্রুতার জের ধরে কলেজ ছাত্রের কব্জি কাটল




মিঠুন কুমার রাজ, জেলা প্রতিনিধিঃ পিরোজপুরের মঠবাড়িয়া উপজেলায় মোবাইল চুরিকে কেন্দ্র করে শুভ শর্মা (২০) নামে এক কলেজ ছাত্রের ডান হাতের কব্জি কেটে বিচ্ছিন্ন করেছে সন্ত্রাসীরা। সঙ্কটজনক অবস্থায় শুভকে উপজেলা স্বাস্থ্য  কমপ্লেক্স ভর্তির পর অবস্থায় অবনতি ঘটলে রাতে বরিশাল শেবাচিম হাসপাতালে প্রেরণ করা হয়েছে।


মঙ্গলবার রাত সাড়ে ৮ টার দিকে পৌর শহরের স্বাস্থ্য কমপ্লেক্স এর ব্রীজের ওপারে সন্ত্রাসী হামলার এ ঘটনা ঘটে। শুভ পৌর শহরের ৩নং ওয়ার্ড দক্ষিণ মিঠাখালী গ্রামের শ্যামল চন্দ্র শীল ওরফে কালা চাঁদের পুত্র ও মঠবাড়িয়া সরকারী কলেজের এইচএসসি পরীক্ষার্থী ও ৩ নং ওর্য়াড ছাএলীগের সাধারণ সম্পাদক। 


প্রত্যক্ষদর্শীরা সূত্রে জানা গেছে , শুভ শর্মা হাসপাতালের ব্রীজের ওপারে দোকানে বসে গল্প করছিল। এসময় পূর্ব বিরোধের জের ধরে স্থানীয় কোরবান, তানভির মল্লিক, নাইম ও সাদির নেতৃত্বে একদল সন্ত্রাসী ধারালো অস্ত্র দিয়ে কুপিয়ে শুভ’র ডান হাত বিচ্ছিন্ন করে উল্লাস করে।


ঘটনার পর খবর পেয়ে উপজেলা চেয়ারম্যান রিয়াজ উদ্দিন আহম্মেদ হাসপাতালে ছুটে যান এবং জড়িতদের দ্রুত গ্রেফতারের দাবী জানান।


এদিকে হামলার প্রতিবাদে বিক্ষুব্ধ ছাএলীগের কর্মীরা পৌর শহরে বিক্ষোভ মিছিল করে পৌর মেয়র রফিউদ্দিন ফেরদৌস কে দায়ী করে তার বাসবভনে ইট পাটকেল নিক্ষেপ করে এবং তার ব্যবহৃত প্রাইভেটকার ভাংচুরের চেষ্টা চালায় । পরে মঠবাড়িয়া থানা পুলিশ পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে অানেন। 


মঠবাড়িয়া থানা অফিসার ইনচার্জ( ওসি) মাসুদুজ্জামান মিলু মাসুদ্দুজ্জামান মিলু জানান, একটি মোবাইল চুরিকে কেন্দ্র করে এ কব্জি বিচ্ছিন্ন করার ঘটনা ঘটেছে। শহরে অতিরিক্ত পুলিশ মোতায়েন করা হয়েছে। এ বিষয়ে মামলার প্রস্তুতি চলছে।

ইপিজেড থানা ও ৩৯ নং ওয়ার্ড আওয়ামী লীগ’র আয়োজনে শোক দিবসের দোয়া মাহফিল-আলোচনা সভা

 ইপিজেড থানা ও ৩৯ নং ওয়ার্ড আওয়ামী লীগ’র আয়োজনে শোক দিবসের দোয়া মাহফিল-আলোচনা সভা




মোঃ হাসান রিফাত, চট্টগ্রাম প্রতিনিধি:চট্টগ্রাম নগরীর ইপিজেড থানা ও ৩৯ নং ওয়ার্ড আওয়ামী লীগ আয়োজিত জাতীয় শোক দিবস উপলক্ষে বঙ্গবন্ধুর ৪৫তম শাহাদাৎ বার্ষিকতে দোয়া মাহফিল -আলোচনা অনুষ্ঠিত হয়।


ওয়ার্ড আওয়ামী লীগের ভারপ্রাপ্ত সভাপতি হাজী সুলতান নাসির উদ্দিন শাহ’র সভাপতিত্বে জাতীয় শোক দিবসের সভায় প্রধান অতিথির বক্তব্য রাখেন ইপিজেড থানা আওয়ামী লীগ আহবায়ক হাজী হারুন উর রশিদ।


বিশেষ অতিথির বক্তব্য রাখেন যুগ্ন আহবায়ক এম. এ তাহের, ওয়ার্ড আওয়ামী লীগ যুগ্ন সম্পাদক মোঃ আকবর হোসেন কবি , প্রধান বক্তা সাবেক কাউন্সিলর হাজি জিয়াউল হক সমুন।



অন্যান্যর মধ্যে আঃলীগ নেতা সেলিম আফজাল, সাবেক কমিশনার হাজী আসলাম সহ আওয়ামী লীগ ,যুবলীগ, শ্রমিক লীগ, স্বেচ্ছাসেবকলীগ, তাঁতীলীগ,মহিলা আঃলীগ,ছাত্রলীগ নেতবৃন্দ ,সহযোগি সংগঠনের নেতাকর্মীরা উপস্থিত ছিলেন।


দোয়া মাহফিলে বিশেষ মুনাজাত পরিচালনা করেন মাওলানা মোঃ আনোয়ারুল ইসলাম আনোয়ারী। অনুষ্ঠান টি বন্দরটিলাস্থ ওয়ার্ড অফিস সংলগ্ন এবাদত খানায় শনিবার বিকেলে সম্পন্ন হয়।

শহীদুল ইসলাম মাষ্টার এম এ জলিল

শহীদুল ইসলাম মাষ্টার   এম এ জলিল




চর জৈনকাঠী সিকদার বাড়ির একটি ছেলে

রাত জাগিয়া পড়ত সদা পরিক্ষা কাছে এলে,

করবে ভালো ফলাফল ছিল তার পণ

পড়বে মাষ্টার্স সে করবে ইংরেজি অর্জন।।


হাটু সম জল কাদা পেড়িয়ে বৃষ্টির দিনে

রৌদ্র তাপ মাথায় নিয়ে যেত প্রখর ফাগুনে ""

হবে সে মাষ্টার সপন ছিল দুচোখ ভরা

পয়সাবিনে পড়াবে সে গরিব শিক্ষার্থী যারা।।



কত ক্রোশ পথ পাড়ি দিয়ে নিত্যি যায় স্কুলে 

হবে প্রকৃত শিক্ষক মনে আশার আলো জালে,

শত শ্রম সাধনা ব্যয়ের পর হয় সে মাষ্টার 

মাতা পিতার গর্ব তিনি খ্যাতিমান্ এলাকার।।


বুঝিয়ে বুঝিয়ে পড়াত দিতো মজার উদাহরণ 

সবার মাঝে ছড়াত শিক্ষাজ্ঞন সে সর্বক্ষন,,

ইংরেজি পড়াত মাধ্যমিক স্কুলে বই ছাড়া

সপনো হল সার্থক তার বাস্তব দিলো ধরা।।

    [মরহুম শহীদুল ইসলাম মাষ্টার স্মরনে]

দৌলতখান উপজেলার তিন ভূমি অফিস পরিদর্শন করলেন উপ-ভূমি সংস্কার কমিশনার

 দৌলতখান  উপজেলার তিন ভূমি অফিস পরিদর্শন করলেন  উপ-ভূমি সংস্কার কমিশনার





প্রেস বিজ্ঞপ্তিঃ 
সামাজিক দূরত্ব বজায় রেখে বরিশাল  বিভাগের  উপ-ভূমি সংস্কার কমিশনার (ডিএলআরসি) তরফদার মোঃ আক্তার জামীল ভোলা জেলার দৌলতখান  উপজেলার তিন ভূমি অফিস পরিদর্শন করেছেন। ১৮ আগস্ট ২০২০ তারিখ মঙ্গলবার পূর্ব নির্ধারিত সফরসূচি অনুযায়ী তিনি উক্ত ভূমি অফিসসমূহ পরিদর্শন করেন।

গতকাল সকাল ১০:৩০ টায় প্রথমে তিনি দৌলতখান  উপজেলা ভূমি অফিস পরিদর্শনে যান এবং ভূমি অফিসের সার্বিক কার্যক্রম পর্যবেক্ষণ করেন। এসময় তিনি পেন্ডিং ই-নামজারিসমূহ দ্রুত আইনানুগভাবে নিষ্পত্তিকরণের র্নিদেশনা দেন। এছাড়া যে সকল হাট-বাজারের পেরীফেরি নির্ধারণ করা হয়নি তা অতি সত্বর পেরীফেরিভুক্তকরণ, চান্দিনা ভিটি ও অর্পিত সম্পতির লীজ আইনানুগভাবে নবায়ন, দেওয়ানী মামলার এসএফ যথাসময়ে প্রেরণ, সিকস্তি ও পয়স্তি জমির এডি লাইন টানা, অডিট আপত্তি নিষ্পত্তিকরণ প্রভৃতি বিষয়ের উপর গুরুত্বারোপ করেন। এরপর তিনি একে একে দৌলতখান পৌর ভূমি অফিস এবং চরখলিফা ইউনিয়ন ভূমি অফিস পরিদর্শন করেন। এখানে তিনি খাস জমিসহ সরকারি সকল সম্পত্তি সঠিকভাবে সংরক্ষণ, তলব বাকী  অর্থ্যাৎ ২ নং রেজিস্টার হোল্ডিং ওয়ারী সরেজমিন পরিদর্শনপূর্বক হালনাগাদ করার নির্দেশনা দেন।

এছাড়া এ সময় তিনি স্বাস্থ্যবিধি মেনে ভূমি অফিসের  সকল কর্মকর্তা-কর্মচারীকে নিষ্ঠা ও সততার সাথে সেবা নিতে আসা জনগণের  প্রতি দায়িত্ব পালনের আহবান জানান। এসময় তার সাথে দৌলতখান উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা এবং সহকারী কমিশনার (ভূমি) (অঃদাঃ) জীতেন্দ্র কুমার নাথ উপস্থিত ছিলেন।

কালিগঞ্জের বালিয়াডাঙ্গায় ফ্রেন্ডস এন্টার প্রাইজের যাত্রা শুরু হলো, উদ্বোধনীতে মানুষের ঢল

কালিগঞ্জের বালিয়াডাঙ্গায় ফ্রেন্ডস এন্টার প্রাইজের যাত্রা শুরু হলো, উদ্বোধনীতে মানুষের ঢল




কালিগঞ্জ (সাতক্ষীরা) প্রতিনিধি
"স্বপ্নের বাড়ি নির্মাণের বিশ্বস্ত সহযোগী” এই শ্লোগানকে সামনে রেখে আনুষ্ঠানিকভাবে শুভ উদ্বোধন হলো ফ্রেন্ডস এন্টারপ্রাইজের।
গত ১৬ই আগস্ট সন্ধ্যায় সাতক্ষীরার কালিগঞ্জ উপজেলার ঐতিহ্যবাহী বালিয়াডাঙ্গা বাজারে প্রতিষ্ঠানটির শুভ উদ্বোধন করা হয়।
 উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন আনোয়ার সিমেন্ট লিমিটেডের সিনিয়র ম্যানেজার (নর্থ সাউথ সেলস) মামুনুর রশিদ।
বিশেষ অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন এরিয়া সেলস ম্যানেজার (যশোর জোন) নাজমুল হক, এক্সেকিউটিভ সেলস অফিসার খায়রুল ইসলাম, প্রোডাক্ট ইঞ্জিনিয়ার সাইফুল ইসলাম নাবিল এবং এলাকার তরুণ ও সুধী সমাজের ব্যক্তিরা। পরিশেষে, দোয়া-মোনাজাত ও মিষ্টিমুখের মাধ্যমে শেষ হয় অনুষ্ঠানটি। উদ্ধোধনীতে এলাকার মানুষের ব্যাপক উপস্হিতি ঘটে। 
 এখানে পাওয়া যাবে বিল্ডিং নির্মাণের সকল ধরনের মালামাল।

মানিকগঞ্জে আবার পদ্মা ও যমুনায় পানি বাড়ছে

মানিকগঞ্জে  আবার  পদ্মা ও যমুনায় পানি বাড়ছে



আব্দুর রাজ্জাক, হরিরামপুর (মানিকগঞ্জ) প্রতিনিধি:মানিকগঞ্জে আবারও বাড়ছে যমুনা ও পদ্মা নদীর পানি । গত ২৪ ঘণ্টায় শিবালয় উপজেলার আরিচা পয়েন্টে যমুনা নদীতে ছয় সেন্টিমিটার পানি বেড়েছে। পানি বাড়ায় যমুনা ও পদ্মা নদী-তীরবর্তী মানুষের মাঝে নতুন করে আতঙ্ক দেখা দিয়েছে।


পানি উন্নয়ন বোর্ডের (পাউবো) হাইড্রোলজি বিভাগের মানিকগঞ্জ অঞ্চলের উপসহকারী প্রকৌশলী বদরুল আলম জানান, চলতি মাসে পানি কিছুটা বাড়লেও মানিকগঞ্জসহ ঢাকার চারপাশে বন্যার আশঙ্কা নেই। তবে আগামী সেপ্টেম্বর মাসের শুরুর দিকে কিছুটা বন্যা হতে পারে। তবে তা দীর্ঘস্থায়ী না হওয়ার সম্ভাবনা রয়েছে।

যমুনা ও পদ্মায় পানি বাড়লেও মানিকগঞ্জের অভ্যন্তরীণ নদীগুলোতে পানি কমছে। এ বিষয়ে পাউবোর আরিচা পয়েন্টের পানি পরিমাপক ফারুক আহমেদ জানান, গত শনিবার ও রবিবার থেকে দৌলতপুর ও হরিরামপুর  শিবালয়ে পদ্মা ও যমুনায় পানি কিছু কিছু  বাড়তে শুরু করে। সর্বশেষ গত ২৪ ঘণ্টায় শিবালয়ের আরিচা পয়েন্টে যমুনায় ছয় সেন্টিমিটার পানি বেড়েছে। তবে তা বিপৎসীমার ২৪ সেন্টিমিটার নিচ দিয়ে প্রবাহিত হচ্ছে। যমুনা পানি বাড়ায় হরিরামপুরে পদ্মায় নদীতেও পানি বাড়ছে।


যমুনা নদীর পানি জেলার অভ্যন্তরীণ কালীগঙ্গা ও ধলেশ্বরী নদীতে প্রবাহিত হয়। যমুনার পানি এখনো অভ্যন্তরীণ নদীগুলোতে না আসায় এ দুটি নদীতে পানি কমছে। এ বিষয়ে পাউবোর তরা পয়েন্টের পানি পরিমাপক (গেজ রিডার) রফিকুল ইসলাম জানান, কালীগঙ্গা নদীতে বর্তমানে ৭ দশমিক ৯৭ সেন্টিমিটার পানি প্রবাহিত হচ্ছে, যা বিপৎসীমার ৪১ সেন্টিমিটার নিচে রয়েছে। গত ২৪ ঘণ্টায় জেলা সদরের তরা পয়েন্টে কালীগঙ্গার পানি এক সেন্টিমিটার কমেছে।


জেলা প্রশাসক এস এম ফেরদৌস বলেন, বর্তমানে মানিকগঞ্জ জেলার প্রায় ১০০ বর্গকিলোমিটার এলাকা বন্যার পানি রয়েছে। বন্যায় ৩১ হাজার হেক্টর জমির ফসলের ক্ষয়ক্ষতি হয়েছে। বন্যাকবলিত মানুষের মাঝে এ পর্যন্ত সরকারিভাবে ৪২৫ মেট্রিক টন চাল এবং ৩ হাজার ৬০০ প্যাকেট শুকনো খাবার বিতরণ করা হয়েছে। এ ছাড়া ৩ লাখ ৫০ হাজার টাকা নগদ অর্থ দেওয়া হয়েছে। বন্যায় ক্ষতিগ্রস্ত পরিবারের তালিকা করা হচ্ছে। বন্যার্ত পরিবারগুলোকে ঘর নির্মাণের জন্য ঢেউটিন ও নগদ অর্থ সহায়তা দেওয়া হবে