সিরাজগঞ্জে মুজিববর্ষ পালন উপলক্ষ্যে বৃক্ষরোপণ ও বিতরণ

সিরাজগঞ্জে  মুজিববর্ষ পালন উপলক্ষ্যে বৃক্ষরোপণ ও বিতরণ


মাসুদ রানা সিরাজগঞ্জ জেলাপ্রতিনিধিঃ 

"সবুজ বৃক্ষ নির্মল পরিবেশ,  বঙ্গবন্ধুর বাংলাদেশ"- এ স্লোগানকে সামনে রেখে মুজিববর্ষ উপলক্ষে- সিরাজগঞ্জ সদরে  বৃক্ষরোপণ ও বিতরণ কর্মসূচী অনুষ্ঠিত হয়েছে। 

সিরাজগঞ্জ সদর উপজেলা আওয়ামী লীগের আয়োজনে। 

রবিবার (৩০ আগষ্ট) সিরাজগঞ্জ  সদর উপজেলার ৯নং  হরিপুর ইউনিয়ের  পাইকপাড়া মডেল হাইস্কুল মাঠ প্রাঙ্গণে বিভিন্ন প্রজাতির গাছের চারা বিতরণ ও রোপনের মধ্যে দিয়ে কর্মসূচী'র আনুষ্ঠানিক উদ্বোধন করেন, কেন্দ্রীয়  আওয়ামীলীগের বন ও পরিবেশ বিষয়ক সম্পাদক দেলোয়ার হোসেন।  

পরে হাই স্কুল মাঠ প্রাঙ্গনে ১' হাজার গাছের চারা বিতরণ করা হয়।   সদর উপজেলা আওয়ামী লীগের আহ্বায়ক ও সদর উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান মোহাম্মদ  রিয়াজ উদ্দিন এর সভাপতিত্বে এক আলোচনা সভা অনুষ্ঠিত হয়। 

এ সময় প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন,  সিরাজগঞ্জ সদর-কামারখন্দ আসনের মাননীয় সংসদ সদস্য অধ্যাপক ডাঃ হাবিবে মিল্লাত মুন্না। 

 বিশেষ অতিথি হিসেবে  উপস্থিত ছিলেন,  বৃক্ষরোপণ বাস্তবায়ন উপ- কমিটির কেন্দ্রীয় অন্যতম সদস্য নূর হোসেন সৈকত,  ইমন রায়, সিরাজগঞ্জ জেলা আওয়ামী লীগের সহ-সভাপতি আলহাজ্ব মোস্তফা কামাল, তথ্যগবেষণা বিষয়ক সম্পাদক আনোয়ার হোসনে ফারুক,     বন ও পরিবেশ বিষয়ক সম্পাদক এ্যাডঃ আবদুর রউফ পান্না, সিরাজগঞ্জ পৌরসভার প্যানেল মেয়র -(১) হেলাল উদ্দিন,

জেলা আঃলীগের মুক্তিযুদ্ধ বিষয়ক সম্পাদক গাজী  সোহরাব আলী সরকার, সদর উপজেলা আঃলীগের যুগ্ন-,সাধারণসম্পাদক  গাজী আব্দুস সাত্তার সিকদার প্রমুখ। 

অনুষ্ঠানে,  ৯ নং কালিয়াহরিপুর ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের সভাপতি মোস্তাক আহমেদ এর সার্বিক সহযোগিতায় ও সাধারণ সম্পাদক জাহাঙ্গীর হোসেন সঞ্চালনায় করেন।  অনুষ্ঠান কর্মসূচির মধ্যে ছিলো- পবিত্র কোরআন তেলাওয়াত, শহীদদের রুহের মাগফেরাত কামনায় দোয়া ও মোনাজাত, আলোচনা সভা শেষে বৃক্ষ রোপণের উদ্বোধন করা হয়  । 

    আলোচনাসভায় উদ্বোধক দেলোয়ার হোসেন বক্তব্য  বলেন,  "জাতির জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের জন্মশতবার্ষিকী পালন উপলক্ষ্যে -জননেত্রী, মাননীয় প্রধানমন্ত্রীর   শেখ হাসিনার নির্দেশনায়   - কেন্দ্রীয় কর্মসূচির অংশ হিসেবে এক কোটি বৃক্ষরোপণ ও বিতরণ কার্যক্রম ইতিমধ্যেই দেশব্যাপী শুরু হয়েছে। পরিবেশ রক্ষায় বৃক্ষরোপণ এর বিকল্প নেই।  

প্রধান অতিথি  ডাঃ হাবিবে মিল্লাত মুন্না বলেন, জাতির জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের  জন্মশতবার্ষিকী যে মুহুর্তে পালন করছি  আগষ্ট মাসের এই শোকাবহ বেদনাদায়ক মুহূর্তে   জাতির জনক বঙ্গবন্ধুর আদর্শকে বুকে ধারণ করে সোনার বাংলা গড়তে জননেত্রী মাননীয় প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার হাতকে আরো শক্তিশালী করতে সকল নেতাকর্মীদের ঐক্যবদ্ধ থেকে কাজ করার আহবান জানান।   

সদর উপজেলা আঃলীগের আহবায়ক মোহাম্মদ রিয়াজ উদ্দিন জানান, মুজিবশতবর্ষ পালনে -প্রতিটি ইউনিয়নেে একহাজার করে ফলজ, ঔষধি ও বনজ বৃক্ষ  রোপণের কর্মসূচি গ্রহণ করা হয়েছে।                        

এসময় উপস্থিত ছিলেন,  সিরাজগঞ্জ জেলা যুবলীগের সাধারণ সম্পাদক একরামুল হক সিরাজগঞ্জ সদর উপজেলার স্বেচ্ছাসেবক লীগের সভাপতি আল-আমিন তালুকদার, পৌরসভার ৫নং ওয়ার্ড আঃলীগের সভাপতি আলহাজ্ব আব্দুল মমিন তারা।        

 দুপুরে শিয়ালকোল ইউনিয়ন শিমুলতলা রোডে অনুরূপ একটি কর্মসূচি অনুষ্ঠিত হয়েছে।

উক্ত অনুষ্ঠানে সংরক্ষিত মহিলা আসনের সাবেক সংসদ সদস্য সিরাজগঞ্জ জেলা মহিলা আওয়ামী লীগের সভাপতি সেলিনা বেগম সপ্না।   এ অনুষ্ঠানের  সার্বিক ব্যবস্থাপনায় ছিলেন, শিয়ালকোল ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের গোলাম আজম তালুকদার বাবলু, সঞ্চালনায় ছিলেন, সাধারণ সম্পাদক জামাল উদ্দিন তালুকদার।  এসময় শিয়ালকোল  ইউনিয়ন আওয়ামী লীগ অন্যান্য নেতৃবৃন্দ সহ  ইউনিয়ন ছাত্রলীগের সাধারণ সম্পাদক মনিরুজ্জামান মনির সহ অনেকেই উপস্থিত ছিলেন।

রাজনৈতিক ও পূর্ব পরিকল্পিত হত্যার শিকার হাসিনুর -এম পি বাদশাহ্

রাজনৈতিক ও পূর্ব পরিকল্পিত  হত্যার শিকার হাসিনুর -এম পি বাদশাহ্

কুষ্টিয়া প্রতিনিধিঃকুষ্টিয়া ১ দৌলতপুর আসনের সংসদসদস্য আ কা ম সরওয়ার জাহান বাদশাহ্'র আপন ফুপাতো ভাই, এম পি'র অবর্তমানে মানুষের সুখ দুঃখকে ভাগ করে নেওয়া আওয়ামীলীগ নেতা হাসিনুর রহমান এর হত্যাকারী ও পরিকল্পনাকারীদের দৃষ্টান্তমূলক শাস্তির দাবিতে 

প্রতিবাদ সভা অনুষ্ঠিত হয়েছে।


রবিবার বিকেল পাঁচটায় দারোগার মোড় বাজারে প্রতিবাদ সভা অনুষ্ঠিত হয়।

উক্ত সভায় উপস্থিত ছিলেন ফিলিপনগর ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের নেতাকর্মীসহ উপজেলা আওয়ামী লীগ, ছাত্রলীগ, যুবলীগ, স্বেচ্ছাসেবক লীগ, কৃষকলীগ ও সহযোগী সংগঠনের হাজার হাজার নেতাকর্মী বৃন্দ।


উক্ত সভায় নেতাকর্মীবৃন্দ তাদের বক্তব্য হাসিনুর হত্যাকারী ও  পরিকল্পনাকারীদের আইনের আওতায় এনে কঠিন থেকে কঠোর বিচার দাবি করেন।


উক্ত অনুষ্ঠানে কুষ্টিয়া দৌলতপুর আসনের সংসদ সদস্য আ কা ম সরওয়ার জাহান বাদশাহ্ বলেন, বিভিন্ন প্রিন্ট ও ইলেকট্রনিক মিডিয়ায় ভুল ব্যাখ্যা এসেছে আমি আমার সাংবাদিক বন্ধুদের মাধ্যমে সঠিক তথ্যটা তুলে ধরতে চাই। মজিবরের ছেলে হত্যার সাথে এই হত্যার সম্পৃক্ততা নাই। এটা রাজনৈতিক ও পূর্ব পরিকল্পিত হত্যা তা নাহলে ঐ সময় আশে পাশের দোকানে যে সব লোক ছিল তারা এগিয়ে আসেনি কারন তারা মজিবরের লোক ছিলো এরা আওয়ামীলীগ বিরোধী রাজনীতির সাথে জড়িত। 


তিনি আর জানান, আর শুনলাম আজ ১৫ থেকে ২০ দিন ধরে এই ষড়যন্ত্রের পরেই হত্যা। হাসিনুরকে শুধু মজিবর হত্যা করেনি, এই হত্যা কান্ড আমি বিনা চ্যালেঞ্জ আমি ছেড়ে দেবোনা যারা পিছনে বসে ষড়যন্ত্র করেছে পরিকল্পনা করেছে তাদের মুখোশ উন্মোচিত হবে। এটা সাধারন হত্যাকান্ড নয় এটা একটি রাজনৈতিক হত্যাকাণ্ড। আমাকে এবং আমার পরিবারকে বিতর্কিত করার জন্য এই হত্যাকাণ্ড ঘটানো হয়েছে।

পটিয়ায় সড়ক দুর্ঘটনায় দুই স্কুল শিক্ষার্থীর মর্মান্তিক মৃত্যু

পটিয়ায় সড়ক দুর্ঘটনায় দুই স্কুল শিক্ষার্থীর মর্মান্তিক মৃত্যু



সেলিম চৌধুরী,পটিয়া প্রতিনিধিঃ- চট্টগ্রাম-কক্সবাজার মহাসড়কের পটিয়ার বাইপাস সড়কের  গাড়িচাপায় প্রাণ হারাল দুই স্কুলছাত্র। ৩০ আগষ্ট 


রবিবার বেলা সাড়ে  ৪টার দিকে এ মর্মান্তিক সড়ক দুর্ঘটনা ঘটে।


নিহতরা হলেন, সিরাজুল ইসলাম (১৪), সে শোভনদণ্ডী এলাকার কুরাংগীরি হাই স্কুলের ৬ষ্ঠ শ্রেণীর ছাত্র। নিহত সিরাজ উপজেলার শোভনদণ্ডী ইউনিয়নের কুরংগীরি গ্রামের মোহাম্মদ বেলালের পুত্র। বর্তমানে সে পটিয়া পৌর সদরের ৪ নং ওয়ার্ডের শেয়ানপাড়া এলাকায় পরিবারের সাথে ভাড়া বাসায় থাকেন। অপর নিহত আরমান হোসেন (১৩), সে পটিয়া পৌর সদরের মোহছেনা সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের ৫ম শ্রেণীর ছাত্র। নিহত আরমান পটিয়া উপজেলার আশিয়া ইউনিয়ন এলাকার ইলিয়াস হোসেনের পুত্র। বর্তমানে সে পরিবারের সাথে পৌর সদরের ৬ নং ওয়ার্ডের পাইকপাড়া গ্রামে ভাড়া বাসায় বসবাস করছেন সুএে জানাযায়। কোন গাড়ি চাপা দিল তা এখনো বলতে পারছে না পটিয়া ক্রসিং হাইওয়ে পুলিশ। তবে স্থানীয়রা বলছেন একটি সাদা রঙের পিকআপ ভ্যানের চাপায় এই দুই স্কুল ছাএ    প্রাণহানির ঘটনা ঘটেপ্রত্যক্ষদর্শী ও স্থানীয় বাসিন্দা জসিম উদ্দিন বাবর, মোঃ আজাদ, সুমন দাশ, মোঃ আরিফ  জানান. পটিয়ার বাইপাস সড়কের পৌর এলাকার শেয়ানপাড়া এলাকার অংশে দুই স্কুল ছাত্র বাইসাকেল নিয়ে সড়কে উঠে। এসময় কক্সবাজারগামী একটি সাদা পিকআপ ভ্যান চাপা দিয়ে


দ্রুত  পালিয়ে  যায়। পরে স্থানীয়রা দুই স্কুল শিক্ষার্থীকে গুরুতর আহতবস্থায় উদ্ধার করে   পটিয়া উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে নিয়ে যায়। সেখানে নেওয়ার পর কর্তব্যরত চিকিৎসক জিয়াউদ্দিন সাকিব জানান, দুই শিক্ষার্থীর মাথা থেতলে গিয়ে অতিরিক্ত রক্তক্ষরণ হয়। আমরা ইসিজি করে দুই শিক্ষার্থীকে মৃত ঘোষণা করেছি।পটিয়া ক্রসিং হাইওয়ে পুলিশের ওসি বিমল চন্দ্র ভৌমিক জানান, বাস চাপায় দুই স্কুল ছাতকে গাড়ি চাপা দিয়ে পালিয়ে যায়। এখনো পর্যন্ত কোন ধরনের গাড়ি চাপা দিতে পারে তা বলতে পারছি না। আমাদের টিম তদন্ত চালিয়ে যাচ্ছে। ঘাতক গাড়ি চালককে দ্রুত আটক করার জন্য অভিযান চলছে। তবে এ দুই স্কুল ছাএ মর্মান্তিক সড়ক দুর্ঘটনায় নিহত হওয়ায় এলাকায় শোকের ছায়া নেমে আসে। সুএে  জানাযায়, এই দুইজন স্কুল ছাএ সম্পর্কে মামাতো ফুফাতো ভাই। বিকেলে অবসর সময়ে সাইকেল চালিয়ে বাইপাস সড়কে য়ায় এখান থেকে আর জীবিত  আসেনি ফিরেছে লাশ হয়। জীবনের আর স্কুলে যাওয়া হবেনা তাদের একেবারে চলে গেলেন না ফেরার দেশে আমিন।




ঝিকরগাছা বাঁকড়ার বালিয়াডাঙ্গায় জাতীয় শোক দিবস পালিত

ঝিকরগাছা বাঁকড়ার বালিয়াডাঙ্গায় জাতীয় শোক দিবস পালিত





আব্দুল জব্বার, যশোর জেলা ব্যুরো প্রধান।। 


যশোরের ঝিকরগাছা উপজেলার ১১নম্বর  বাঁকড়া ইউনিয়নের ৯ নম্বর বালিয়াডাঙ্গা ওয়ার্ড আওয়ামীলীগের আয়ো‌জনে জা‌তির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মু‌জিবুর রহমান এর ৪৫তম শাহাদাৎ বার্ষিকী ও জা‌তীয় শোক দিবস  উপলক্ষে স্থানীয় বালিয়াডাঙ্গা বাজারে  আলোচনা সভা ও দোয়া মাহ‌ফিল অনু‌ষ্ঠিত হয়েছে।


 ইউনিয়নের ৯ নাম্বার ওয়ার্ড আওয়ামীলীগ নেতা খোরশেদ আলমের সভাপ‌তিত্বে, অনু‌ষ্ঠনে প্রধান অতিথি হিসাবে বক্তব্য রাখেন, ১১নম্বর বাঁকড়া ইউপি চেয়ারম্যান নিছার আলী।


বিশেষ অতিথি হিসাবে বক্তব্য রাখেন, ইউনিয়ন আওয়ামীলীগের সিনিয়র সহ সভাপতি আব্দুস সামাদ দপ্তরী। আরো বক্তব্য রাখেন, ইউনিয়ন যুবলীগের সভাপতি আবুল কালাম আজাদ, সহ সভাপতি মাষ্টার সেলিম রেজা, বড় খোলসী ওর্য়াড আওয়ামীলীগের সাধারণ সম্পাদক মোশাররফ হোসেন, মেম্বার মোসলেম উদ্দিন, ওর্য়াড আওয়ামীলীগ নেতা আবুল ইসলাম, বিলায়েত হোসেন প্রমুখ।

কুমিল্লার মুরাদনগরে গোমতী নদীতে ডুবে মাদ্রাসা ছাত্রের মৃত্যু

কুমিল্লার মুরাদনগরে গোমতী নদীতে ডুবে মাদ্রাসা ছাত্রের মৃত্যু


শাহ আলম জাহাঙ্গীর

ব্যুরো চিফ,কুমিল্লাঃ

কুমিল্লার মুরাদনগর উপজেলায় গোমতী নদীতে গোসল করতে গেলে পানিতে ডুবে   মাহমুদুল হাসান (১৬) নামে এক মাদ্রাসা ছাত্রেরর মৃত্যু হয়েছে।


শনিবার বিকালে উপজেলার নবীপুর (পঃ) ইউনিয়নের নিমাইকান্দি এলাকায় এ ঘটনা ঘটে। মাদ্রাসা ছাত্র মাহমুদুল হাসান চাঁদপুর জেলার কচুয়া উপজেলার রাগদইল গ্রামের জসিম উদ্দিনের ছেলে।


জানা যায়, নিহত মাহমুদুল হাসান উপজেলার নিমাইকান্দি গ্রামের মাদরাসাতুল মদিনা আল আরাবিয়া মাদরাসার কিতাব বিভাগের ১ম বর্ষের ছাত্র। শনিবার বিকাল ৪ টার সময় প্রতিদিনের মতো পার্শ্ববর্তী গোমতী নদীতে গোসল করতে যায়। আছরের নামাযের আযান হলেও ফিরে না আসায় মাদ্রাসার লোকজন তাকে খুঁজতে বের হয়। পরে  নদীর পাড় খুঁজতে গিয়ে তার জামা কাপড় দেখতে পায়। আশে পাশে বহু খোঁজা খোঁজি করে না পেয়ে ওইদিন রাতেই মুরাদনগর থানায় একটি সাধারণ ডায়েরী করে মাদ্রাসা কর্তৃপক্ষ। নিখোঁজ হওয়ার পরদিন রবিবার সকাল ৯ টার সময় স্থানীয় লোকজন সদরের বেইলী ব্রীজের কাছে গোমতী নদীতে তার লাশ ভাসতে দেখে থানায় খবর দেয়। খবর পেয়ে মুরাদনগর থানা পুলিশ লাশ উদ্ধার করে থানায় নিয়ে আসলে মাদরাসার পরিচালক মাওলানা ওমর ফারুক নিহত মাহমুদুল হাসানকে শনাক্ত করে।


মুরাদনগর থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা নাহিদ আহমেদ (তদন্ত) বিষয়টি নিশ্চিত করে বলেন, এ ব্যাপারে থানায় একটি অপমৃত্যুর মামলা দায়ের করা হয়েছে। লাশ ময়না তদন্তের জন্য রোববার দুপুরে কুমিল্লা মর্গে প্রেরন করা হয়েছে।

আওয়ামী লীগ সভাপতি ও প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার সভাপতিত্বে রোববার গনভবনে বাংলাদেশ আওয়ামী লীগের সংসদীয় মনোনয়ন বোর্ডের সভা অনুষ্ঠিত

আওয়ামী লীগ সভাপতি ও প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার সভাপতিত্বে   রোববার গনভবনে বাংলাদেশ আওয়ামী লীগের সংসদীয় মনোনয়ন বোর্ডের সভা অনুষ্ঠিত


নিউজ ডেস্কঃ পাবনা-৪ আসনের (ঈশ্বরদী-আটঘোরিয়া) উপনির্বাচনে আওয়ামী লীগের মনোনয়ন পেয়েছেন নূরুজ্জামান বিশ্বাস। তিনি পাবনা জেলা আওয়ামী লীগের সহ-সভাপতি ও ঈশ্বরদী উপজেলা পরিষদ চেয়ারম্যান। 

রোববার গণভবনে আওয়ামী লীগের সংসদীয় মনোনয়ন বোর্ডের বৈঠকে এই মনোনয়ন চূড়ান্ত করা হয়।


প্রধানমন্ত্রী ও আওয়ামী লীগ সভাপতি শেখ হাসিনার সভাপতিত্বে বৈঠকে মনোনয়ন বোর্ডের সদস্যরা অংশ নেন। 

ঈশ্বরদী ও আটঘোরিয়ায় মনোনয়ন নিয়ে মনোনয়ন প্রত্যাশী, নেতা-কর্মী, সমর্থক ও সাধারণ ভোটারদের মধ্যে গত কযেক দিন ধরেই টান টান উত্তেজনা ছিল। কে হচ্ছেন নৌকার প্রার্থী? তা নিয়ে ছিল নানা জল্পনা-কল্পনা। প্রার্থী চূড়ান্ত হওয়ার মধ্য দিয়ে উত্তেজনার অবসান হলো। 

গণভবনে বৈঠকে অংশ নেওয়া দলের দপ্তর সম্পাদক ব্যারিস্টার বিপ্লব বড়ুয়া সাংবাদিকদের জানান, বৈঠকে ঢাকা-৫, ঢাকা-১৮, সিরাজগঞ্জ-১ ও নওগাঁ-৬ আসনের উপনির্বাচনের দলীয় প্রার্থীর বিষয়েও আলোচনা হয়েছে। এ সময় এই চারটি আসনের প্রার্থী মনোনয়নের সিদ্ধান্ত গ্রহণের দায়িত্ব প্রধানমন্ত্রী ও আওয়ামী লীগ সভাপতি শেখ হাসিনার ওপর অর্পণ করেন মনোনয়ন বোর্ডের সদস্যরা। পরবর্তী সময়ে এ বিষয়ে সিদ্ধান্ত জানাবেন দলীয় সভাপতি।

এর আগে পাঁচটি আসনের উপনির্বাচনের জন্য মোট ১৪১ জন মনোনয়নপ্রত্যাশী দলীয় মনোনয়নপত্রের ফরম সংগ্রহ ও জমা দিয়েছিলেন। এর মধ্যে পাবনা-৪ আসনের জন্য মনোনয়ন চেয়েছিলেন এই আসনের সদ্য প্রয়াত এমপি ও সাবেক ভূমিমন্ত্রী শামসুর রহমান শরীফ ডিলুর স্ত্রী, ছেলে ও মেয়েসহ ২৮ জন। এই অবস্থায় প্রয়াত এমপির পরিবারের বাইরের কাউকে দলীয় প্রার্থী করা হলো।  

এছাড়া ঢাকা-১৮ আসনে ৫৬ জন, নওগাঁ-৬ আসনে ৩৪ জন, সিরাজগঞ্জ-১ আসনে ৩ জন এবং ঢাকা-৫ আসনে ২০ জন আওয়ামী লীগের মনোনয়ন ফরম জমা দিয়েছেন।


পাবনা-৪ আসনের উপনির্বাচন ২৬ সেপ্টেম্বর অনুষ্ঠিত হবে। ঢাকা-৫ ও নওগাঁ-৬ আসনের উপনির্বাচন ১৭ অক্টোবর অনুষ্ঠিত হবে। এছাড়া ঢাকা-১৮ ও সিরাজগঞ্জ-১ আসনের উপনির্বাচন আরো ৯০ দিন পিছিয়ে দিয়েছে নির্বাচন কমিশন। 

গত ২ এপ্রিল পাবনা-৪ আসনের এমপি শামসুর রহমান শরিফ ডিলু, ৬ মে ঢাকা-৫ আসনের এমপি হাবিবুর রহমান মোল্লা, ১৩ জুন সিরাজগঞ্জ-১ আসনের এমপি ও সাবেক স্বাস্থ্যমন্ত্রী মোহাম্মদ নাসিম, ৯ জুলাই ঢাকা-১৮ আসনের এমপি ও সাবেক স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী অ্যাডভোকেট সাহারা খাতুন এবং ২৭ জুলাই নওগাঁ-৬ আসনের এমপি ইসরাফিল আলমের মৃত্যুতে এই পাঁচটি আসন শূন্য হয়। সবগুলো আসনের মৃত্যুবরণকারী এমপিই আওয়ামী লীগ থেকে নির্বাচিত হয়েছিলেন।

কয়রায় বানভাসি মানুষের পাশে জলবায়ু পরিষদ

কয়রায় বানভাসি মানুষের পাশে জলবায়ু পরিষদ




 মোহাঃ ফরহাদ হোসেন কয়রা(খুলনা)প্রতিনিধিঃ কয়রা উপজেলার উত্তর বেদকাশি ইউনিয়নে লবন পানিতে প্লাবিত ৫০ পরিবারের মাঝে ত্রান বিতরন করেছে উপজেলা জলবায়ু পরিষদ।


শনিবার বেলা ১১ টায় ফেজবুক গ্রুপ সহযোগিতার পক্ষ থেকে এ সকল ত্রান সামগ্রীর ব্যবস্থা করা হয়। প্যাকেজ হিসাবে প্রতি পরিবারের মাঝে চাল, ডাল, সয়াবিন তৈল, আলু, পেয়াজ, স্যালাইন ও মাস্ক বিতরনকালে উপস্থিত ছিলেন উপজেলা জলবায়ু পরিষদের সাধারন সম্পাদক অধ্যক্ষ অদ্রিশ আদিত্য মন্ডল, সদস্য এ্যাডঃ আনিছুর রহমান, সাংবাদিক রিয়াছাদ আলী, ইউপি সদস্য সুলতানা মিলি, সিএসআরএলের ফিল্ড অফিসার নিরাপদ মুন্ডা, স্বেচ্ছাসেবক ইকবাল হোসেন, রানা প্রমুখ।

যশোরের প্রথিতযশা সাংবাদিক মুকুলের ২২তম মৃত্যুবার্ষিকী পালিত

 যশোরের প্রথিতযশা সাংবাদিক মুকুলের ২২তম মৃত্যুবার্ষিকী পালিত



সুমন হোসেন,  যশোর জেলা  প্রতিনিধি। 

শোক, শ্রদ্ধা, ভালবাসা ও হত্যাকান্ডে জড়িতদের দ্রুত বিচার দাবির মধ্যে দিয়ে যশোরের প্রথিতযশা সাংবাদিক শহীদ সাইফুল আলম মুকুলের ২২তম মৃত্যুবার্ষিকী পালিত হয়েছে। এ উপলক্ষে রোববার সকাল ১১টায় কালোব্যাজ ধারণ, শোকর‌্যালি ও শহীদের স্মৃতিস্তম্ভে পুষ্পস্তবক অর্পণ করা হয়। ১৯৯৮ সালের এই দিনে সন্ত্রাসীদের বোমা ও গুলিতে নিহত হন তিনি। করোনার কারণে এ বছর সংক্ষিপ্ত কর্মসূচির মধ্যে দিয়ে সাইফুল আলম মুকুলের মৃত্যুবার্ষিকী পালিত হয়েছে।

সকাল সাড়ে ১১টায় প্রেসক্লাব যশোরের চত্বর থেকে শোকর‌্যালি বের হয়ে শহরের পিয়ারী মোহন রোডে অবস্থিত মরহুমের স্মৃতিস্তম্ভে গিয়ে শেষ হয়। এতে সাংবাদিক নেতৃবৃন্দ ছাড়াও জেলায় কর্মরত প্রিন্ট, ইলেকট্রনিক ও অনলাইন নিউজ পোর্টালের সাংবাদিকরা অংশ নেন। এরপর স্মৃতিস্তম্ভে পুষ্পস্তবক অর্পণ করা হয়। শহীদ সাংবাদিক সাইফুল আলম মুকুলের প্রতি শ্রদ্ধাঞ্জলি জানান প্রেসক্লাব যশোর, যশোর সংবাদপত্র পরিষদ, যশোর সাংবাদিক ইউনিয়ন, সাংবাদিক ইউনিয়ন যশোর, যশোর জেলা সাংবাদিক ইউনিয়ন, বাংলাদেশ ফেডারেল সাংবাদিক ইউনিয়ন, ফটো জার্নালিস্ট অ্যাসোসিয়েশন, গ্রামের কাগজ পরিবার, দৈনিক স্পন্দনসহ সাংবাদিক নেতৃবৃন্দ। এ সময় অন্যান্যের মধ্যে উপস্থিত ছিলেন প্রেসক্লাব যশোরের সভাপতি জাহিদ হাসান টুকুন, যশোর সংবাদপত্র পরিষদের সভাপতি একরাম উদ-দ্দৌলাহ, সাধারণ সম্পাদক ও গ্রামের কাগজের সম্পাদক মবিনুল ইসলাম মবিন, প্রেসক্লাব যশোরের সম্পাদক আহসান কবীর, সহসভাপতি আনোয়ারুল কবির নান্টু, যুগ্ম সম্পাদক সরোয়ার হোসেন, দপ্তর সম্পাদক তৌহিদ জামান, সাংস্কৃতিক ও সমাজসেবা সম্পাদক তহীদ মনি, দৈনিক স্পন্দনের নির্বাহী সম্পাদক মাহবুব আলম লাভলু, যশোর সাংবাদিক ইউনিয়ন যশোরের সভাপতি সাজেদ রহমান বকুল, সাধারণ সম্পাদক মিলন রহমান, সাংবাদিক ইউনিয়ন যশোরের সভাপতি শহীদ জয়, জেলা সাংবাদিক ইউনিয়নের সভাপতি শেখ দীনু আহমেদ, ফটো জার্নালিস্ট অ্যাসোসিয়েশনের সভাপতি মনিরুজ্জামান মুনির প্রমুখ। দীর্ঘ ২২ বছর পরও খুনীদের বিচার না হওয়ায় ক্ষোভ প্রকাশ করেন সাংবাদিক নেতারা।

১৯৯৮ সালের ৩০ আগস্ট রাতে যশোর শহর থেকে বেজপাড়ার নিজ বাসভবনে যাওয়ার পথে সন্ত্রাসীদের বোমা হামলা ও গুলিতে নিহত হন দৈনিক রানার সম্পাদক সাইফুল আলম মুকুল।

আশাশুনিতে জেলা প্রশাসকের বন্ধুদের নৌকা ও নগদ অর্থ প্রদান

আশাশুনিতে জেলা প্রশাসকের বন্ধুদের নৌকা ও নগদ অর্থ প্রদান





আহসান  উল্লাহ  বাবলু উপজেলা  প্রতিনিধিঃ : সাতক্ষীরা জেলা প্রশাসক এসএম মোস্তফা কামালের ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের বন্ধুরা আশাশুনির বন্যায় প্লাবিত মানুষকে নৌকা ও নগদ অর্থ প্রদান করেছেন। 

রবিবার দুপুরে শ্রীউলা ইউনিয়নের মহিষকুড় মৎস্যসেটে এ ত্রান বিতরণকালে জেলা প্রশাসক বলেন- আমার ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের বন্ধু মেহেদী, মোস্তফা, সুমন সাতক্ষীরার বন্যা পরিস্থিতি দেখে অসহায় মানুষের পাশে তারা সহযোগিতার হাত বাড়িয়েছেন। বন্ধুরা উপলব্ধি করেছেন যে ত্রান নিয়ে যার যার ঘরে পৌছানোও একটা বিড়ম্বনা হয়ে দেখা দিয়েছে। তাই ত্রাণ সরবরাহের জন্য প্রতাপনগরে ২ নৌকা ও শ্রীউলায় ৩ টি এবং আরও ৫ টি নৌকা মেরামত করতে অর্থিক সহায়তাসহ ১০০ ক্ষতিগ্রস্ত পরিবারকে ৫০০ টাকা হারে প্রদান করেন।

জেলা প্রশাসকের বন্ধু সুমন বলেন- আমাদের দেখাদেখি ক্ষতিগ্রস্ত মানুষের পাশে যাতে সমাজের বিত্তবানরা এগিয়ে আসে সেটাকে এগিয়ে নিতেই আমাদের এ প্রয়াস। 

ত্রাণ বিতরণকালে উপস্থিত ছিলেন- আশাশুনি উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা মীর আলিফ রেজা, ভাইস চেয়ারম্যান অসীম বরণ চক্রবর্তী, ইউপি চেয়ারম্যান আবু হেনা সাকিল ও শেখ জাকির হোসেন প্রমুখ।###

ঝিনাইদহে ট্রাফিক পুলিশের অভিযান শুরু; শতাধিক ইজিবাইকের এলইডি বাল্ব বিনষ্ট

ঝিনাইদহে ট্রাফিক পুলিশের অভিযান শুরু; শতাধিক ইজিবাইকের এলইডি বাল্ব বিনষ্ট



খোন্দকার আব্দুল্লাহ বাশার। 

খুলনা ব্যুরো প্রধান। 

 মোটর যান সম্পর্কিত জন সচেতনা বাড়াতে ঝিনাইদহের প্রান কেন্দ্র পায়রা চত্তরে ট্রাফিক পুলিশের সম্মিলিত অভিযান চালানো হয়েছে। এসময় শতাধিক ইজিবাইকের এলইডি বাল্ব বিনষ্ট করাসহ ২৬ টি মোটর সাইকেলের বিভিন্ন অপরাধে মামলা ও ৮ টি মোটর সাইকেল আটক করা হয়েছে। রবিবার (৩০ আগস্ট) বিকালে এ অভিযান পরিচালনা করা হয়। এসময় ট্রাফিক পুলিশ  ইন্সপেক্টর সালাউদ্দিনের নেতৃত্বে সেখানে উপস্থিত ছিলেন, ট্রাফিক ইন্সপেক্টর গৌরাঙ্গ পাল, সার্জেন্ট নুরুল ইসলাম, কনক, সাদ্দাম ও ইমরান।

অভিযানকালে ট্রাফিক ইন্সপেক্টর সালাউদ্দিন বলেন, আগামী কাল থেকে জেলায় এ অভিযান অব্যাহত থাকবে।

বিয়ে নয় প্রতারনা করাই নববধু ফারিয়ার মূল উদ্দেশ্য

বিয়ে নয় প্রতারনা করাই নববধু ফারিয়ার মূল উদ্দেশ্য




 স্টাফ রিপোর্টারঃ  গত ১২ই জুলাই আনুষ্ঠানিকভাবে উপজেলার বড়বাইশদিয়া ইউনিয়নের টুংগিবাড়ীয়া গ্রামের মো. বাহাদুর মুফতী ছেলে রুহুল আমিন রুবেলের সঙ্গে, উপজেলার ছোটবাইশদিয়া ইউনিয়নের সাজির হাওলা গ্রামের মো. দুধা খাঁর মেয়ে মোছা. ফারিয়ার বিয়ে হয়। পাঁচ লক্ষ টাকা দেনমোহর ধার্য্য করে বিবাহটি সম্পন্ন হয়। বিয়ের সময় ১১ বড়ি স্বর্ন অলংকার দিয়ে নববধুকে ঘরে তুলে আনেন ছেলের মা। ছেলের বাড়ি তুলে আনার পর ১ মাস সংসার করেন নববধু ফারিয়া। হঠাৎ নববধু ফারিয়া তার মায়ের অসুস্থতার কথা শুনে স্বামীকে নিয়ে ছোটবাইশদিয়া নিজ বাড়িতে বেড়াতে যায়। যাওয়ার পরের দিনই ফারিয়ার মা রেজিনা বেগমের কাছে গিয়ে  স্বর্ন- অলংকার ও মায়ের চিকিৎসার জন্য স্বামী রুবেলের কাছ হতে নগত ২ লক্ষ  টাকা নিয়ে   উপজেলার রাঙ্গাবালী ইউনিয়নের পশ্চিম নেতা গ্রামের মৃত আ. শুকুর হাওলাদারের ছেলে মো. শোভনকে নিয়ে পালিয়ে যায়।  তার পরের দিন খোজাখুজির পর নববধু ফারিয়া ২৭ আগস্ট বিজ্ঞ  নোটারী পাবলিক এর কার্যালয় ঢাকা, বাংলাদেশের মাধ্যমে স্বামী রুবেলকে তালাক দেন স্ত্রী ফারিয়া ও সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে প্রচার করেন। এরপরে সেদিনই নিজ ইচ্ছায় উপজেলার রাঙ্গাবালী ইউনিয়নের পশ্চিম নেতা গ্রামের মৃত আ. শুকুর হাওলাদারের ছেলে মো. শোভনকে বিয়ে করেন তিনি। ২ লক্ষ টাকা দেনমোহর ধার্য্য করে বিজ্ঞ জুডিশিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট/নোটারী পাবলিক আদালত, বরিশালে তাদের বিবাহ সম্পন্ন হয় তাও সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে ফেইসবুকে প্রচার করেন। এরপর থেকেই লাইভে এসে উল্টা স্বামী রুবেল হুমকি  নানাভাবে হত্যার হুমকি দেওয়া হচ্ছে। বিষয়টি রাঙ্গাবালী থানায় সাধারণ ডায়েরি করা হয়েছে। ডায়েরী নং ৮১০। এলাকায় খোঁজ নিয়ে জানা গেছে মেয়ে ফারিয়া মাদকসেবন করত সবসময় । বিয়ে নয় প্রতারনা করাই নববধু ফারিয়ার মূল্য উদ্দেশ্য।

হবিগঞ্জে আলোচিত ঘটনা -৩!

হবিগঞ্জে আলোচিত ঘটনা -৩!




লিটন পাঠান, হবিগঞ্জ জেলা প্রতিনিধি


হবিগঞ্জ জেলার বাহুবল উপজেলার সুন্দ্রাটিকি গ্রামে সুন্দরী যুবতীকে প্রেমের ফাঁদে ফেলে ধর্ষণ করেছে বলে অভিযোগ পাওয়া গেছে। তবে বিষয়টি ধামাচাপায় মাতব্বররা তৎপর হয়ে উঠেছে। সমাধান না হওয়ায় (২৯আগস্ট) বিকালে ধর্ষণের অভিযোগ এনে মেয়েকে হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে জানা যায়, ওই গ্রামের জনৈক ফয়ছল মিয়ার সাথে আব্দুল কাদিরের অষ্টাদশী কন্যার ৩ বছর ধরে প্রেমের সম্পর্ক চলে আসছে। প্রায়ই তারা বিভিন্ন স্থানে ঘুরাফেরা করতো।


গত ২৬ আগষ্ট গভীররাতে ফতেপুরে ফয়ছলের ফার্নিচারের দোকানে ওই যুবতীকে ফোন দিয়ে আনে এবং বিয়ের প্রতিশ্রুতি দিয়ে একাধিকবার ধর্ষণ করে।

এ বিষয়ে বাহুবল থানার ওসি কামরুজ্জামানকে বারবার ফোন দেয়া হলেও তিনি ফোন রিসিভ করেননি।

তবে সদর থানার এসআই মহিন উদ্দিন হাসপাতালে গিয়ে ভিকটিমের জবানবন্দি রেকর্ড করেন এ বিষয়ে তিনি জানান, তদন্ত চলছে তবে ডাক্তারী পরীক্ষার পর বিস্তারিত বলা হবে।


হবিগঞ্জের বানিয়াচং ইয়াবাসহ গ্রেফতার উপজেলা ছাত্রলীগ সভাপতি মাহমুদ হোসেন খান মামুনের রিমান্ডের আবেদন করেছে জেলা গোয়েন্দা (ডিবি) পুলিশ। শনিবার সন্ধ্যায় হবিগঞ্জ ডিবি পুলিশের ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মানিকুল ইসলাম এ তথ্য জানান। এর আগে গত ২৭ আগস্ট অতিরিক্ত চিফ জুডিসিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট আদালতে পাঁচদিনের রিমান্ড আবেদন করেন জেলা গোয়েন্দা পুলিশের উপ-পরিদর্শক (এসআই) মোজাম্মেল হক ওসি মানিকুল ইসলাম বলেন, মামুনকে পাঁচদিনের রিমান্ডে এনে জিজ্ঞাসাবাদের জন্য আদালতে আবেদন করা হয়েছে। তবে এখনো রিমান্ড শুনানির তারিখ ধার্য্য করা হয়নি। 


গত ২৪ আগস্ট দিনগত রাতে বানিয়াচং উপজেলা সদরের বড় বাজার এলাকা থেকে মামুনকে গ্রেফতার করে ডিবি পুলিশ। সে সময় তার কাছ থেকে জব্দ করা হয় ৩০০ পিস ইয়াবা ও একটি ধারালো অস্ত্র।  পরদিন ২৫ আগস্ট মামুনের বিরুদ্ধে দু’টি মামলা দায়ের করেছেন ডিবি পুলিশের উপ-পরিদর্শক (এসআই) দেবাশীষ তালুকদার। একটি অস্ত্র আইনে এবং অপরটি মাদক আইনে। পরে তাকে আদালতে সোপর্দ করলে বিচারক কারাগারে পাঠানোর নির্দেশ দেন।


হবিগঞ্জের শায়েস্তাগঞ্জে সড়ক দুর্ঘটনায় মালম মিয়া (২৩) নামে এক পিকআপ চালকের মৃত্যু হয়েছে। সে চুনারুঘাট উপজেলার মিরাশী ইউপির গোয়াসপুর গ্রামের বশর উদ্দিনের ছেলে রোববার (৩০ আগস্ট) সকাল ১২ টার দিকে হবিগঞ্জ-শায়েস্তাগঞ্জ সড়কের কলিমনগরে এ ঘটনা ঘটে একই ঘটনায় আহত হয়েছেন আরও দুজন। তাতক্ষণিকভাবে আহতদের পরিচয় জানা যায়নি।


পুলিশ জানায় ট্রাক চালক মালম মিয়া চুনারুঘাট থেকে গাছ নিয়ে হবিগঞ্জ যাওয়ার পথে শায়েস্তাগঞ্জ-হবিগঞ্জ বাইপাস সড়কের কলিমনগর নামক স্থানে ট্রাকের চাকা পাংচার হলে ট্রাক গাছের সাথে ধাক্কা লেগে খাদে পড়ে যায় এতে ঘটনাস্থলেই চালক মারা যায়।

শায়েস্তাগঞ্জ থানা ওসি (তদন্ত) আল মামুন, দুর্ঘটনার সত্যতা নিশ্চিত করেছেন।

আশাশুনি'র শ্রীউলা ইউনিয়নে ত্রান বঞ্চিত, জেলা প্রশাসকের কাছে অভিযোগ

 আশাশুনি'র শ্রীউলা ইউনিয়নে ত্রান বঞ্চিত, জেলা প্রশাসকের কাছে  অভিযোগ

 

আজহারুল ইসলাম সাদী, জেলা  প্রতিনিধিঃবর্তমানে একদিকে করোনা ভাইরাস, অপরদিকে ঘূর্ণিঝড় আম্ফানে নদী ভাঙ্গন, তার উপর সাম্প্রতিক অতিবর্ষনে প্লাবিত হয়ে নিম্নাঞ্চলের মানুষের স্বাভাবিক জীবন যাপন দুর্বিসহ হয়ে উঠেছে। 

যার মধ্যে সাতক্ষীরা জেলার আশাশুনি উপজেলার,  শ্রীউলা ইউনিয়ন বাসী, এতটাই ক্ষতিগ্রস্ত তা ভাষায় প্রকাশ যোগ্য নয়।

তার উপর ক্ষতিগ্রস্ত এলাকাবাসীর অভিযোগ আমরা ধর্না দিয়েও সরকারি ত্রাণ সামগ্রী পাচ্ছি না? 

অথচ যারা ঘুমিয়ে থাকে তাদের ঘুম থেকে ডেকে উঠিয়ে ত্রাণ দেয়া হচ্ছে?


এমনি অভিযোগ করেন আজ রোববার (৩০ আগস্ট) দুপুরে সয়ং সাতক্ষীরা জেলা প্রশাসক এসএম মোস্তফা কামাল এর সামনে।


অভিযোগ রয়েছে, শ্রীউলা  ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের সভাপতি ও সাবেক ইউপি চেয়ারম্যান নূর মোহাম্মদ সরদার ও আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক মাইনুল ইসলাম বুলুকে, বর্তমান ইউপি  চেয়ারম্যান সাথে নিয়ে কোন কাজ করেন না?


এলাকাবাসী অভিযোগ করে আরো বলেন,  শ্রীউলা ইউপি চেয়ারম্যান আবু হেনা সাকিলকে যারা সমর্থন করেনা, তাদেরকে বঞ্চিত করেন পরিষদের সকল সুযোগ সুবিধা থেকে।

বিষয়টি শ্রীউলা ইউনিয়নের দূর্গম এলাকায় এসে পর্যবেক্ষণ করলে, প্রমাণ পাওয়া যাবে বলে যানান ভুক্তভোগীরা।


ক্ষোভের বসে ভুক্তভোগীরা সমবেত হয়ে মহিষকুড় এলাকায় আজ, এমনি অভিযোগ তুলে ধরেন।

এসময় জেলা প্রশাসক তাদের কে আশ্বস্ত করে জানান আপনারা কেউ ত্রাণের আওতা থেকে বাদ যাবেন না?

তবে পর্যায়ক্রমে যারা বেশি ক্ষতিগ্রস্ত তারাই আগে ত্রাণ পাবেন।

পটিয়ার আশিয়া একজনকে কুপিয়ে জখমসহ আহত- ৪, থানায় অভিযোগ

পটিয়ার আশিয়া একজনকে কুপিয়ে জখমসহ আহত- ৪, থানায় অভিযোগ




পটিয়া  (চট্টগ্রাম) প্রতিনিধিঃ- চট্টগ্রামের পটিয়ার আশিয়ায় ইউনিয়নে ৫ নন্বর ওয়ার্ডে মধ্যেম পাড়ার  সোনা মিয়া সওদাগরের বাড়িতে পুুর্বের জায়গায়  সম্পক্তি নিয়ে বিরোধের জের ধরে প্রতিপক্ষরা হামলা চালিয়ে একজন বৃদ্ধকে কুপিয়ে জখম সহ৪ জনকে রক্তাক্ত জখম করেছে মর্মে অভিযোগ পাওয়া গেছে। ঘটনাটি ঘটেছে ৩০ আগষ্ট রবিবার সকাল  ৯ টায় আশিয়া ইউনিয়নের ৫ নম্বর ওয়ার্ড মধ্যেম পাড়ার সোনা মিয়া সওদাগরের বাড়িতে। আহতরা হলেম,   এলাকার বৃদ্ধ গোলাম মোস্তাফা, তার ছেলে সাদ্দাম হোসেন, স্ত্রী  হাছিনা বেগম, মেয়ে কলেজ শিকার্থী শামীমা আকতার। আহতদের স্থানীয়রা উদ্ধার করে পটিয়া স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে চিকিৎসা জন্য প্রেরণ করে। এর মধ্যে গোলাম মোস্তাফা ও সাদ্দাম হোসেনের অবস্থা আশংকাজনক হওয়ায় তাদেরকে চমেক হাসপাতালে চিকিৎসা জন্য রেফার করে


জানান তার মেয়ে শামীমা আকতার । গোলাম মোস্তাফা ও তার  পুএ  সাদ্দাম হোসেন  চিকিৎসা জন্য চট্টগ্রামে থাকায়  সাদ্দাম বাদী হয়ে  তার   স্বাক্ষরিত একটি  অবিযোগ তার স্ত্রী জান্নাতুল  ফেরদৌস এর মাদ্যেমে একই এলাকার মোহাম্মদ হোসেন, মোহাম্মদ জাহেদুল আলম, মোহাম্মদ ওমর ফারুক, তসলিমা আকতার, ইসমত আরা আকতার সহ অজ্ঞাতনামা ৫/৬ জনের বিরুদ্ধে পটিয়া থানায় একটি অভিযোগ দায়ের করেছে। বিষয়টি নিশ্চিত করেন থানার ডিউটি অফিসার এস আই বোরহান। অভিযোগ সুএে জানাযায়,গোলাম মোস্তাফার সাথে   মোহাম্মদ হোসেন গং মধ্যে বাড়ির পৈত্রিক সম্পক্তি নিয়ে দীর্ঘদিন বিরোধ চলে আসছিল। এর জের ধরে তুচ্ছ ঘটনার  বিষয়ে মোস্তাফার ছাগল মোহাম্মদ হোসেন ভিটিতে গিয়েছে কেন অকথ্য ভাষায় গালিগালাজ করে। এতে  মোস্তাফা এর কারণ জানতে চাইলে প্রতিপক্ষরা পুর্ব পরিকল্পিত ভাবে দেশীয়অস্ত্রশস্র রোহার রড ও কিরিচ  দিয়ে  গোলাম মোস্তাফা কে মাথায় কিরিচ দিয়ে কুপিয়ে রক্তাক্ত জখম করলে ত চিৎকার দিয়ে  মাটিতে লুটিয়ে পড়ে। তার  চিৎকার শুনে ছেলে সাদ্দাম হোসেন এগিয়ে আসলে প্রতিপক্ষরা লোহার রড দিয়ে সাদ্দামকে এলোপাতাড়ি পিটিয়ে রক্তাক্ত জখম করে। এতে তার বাম পায়ে এবং ডান হাতের বাহুতে লেগে হাড়ভাঙা জখম হয়। এসময় তার মা হাছিনা বেগম, বোন শামীমা আকতার এগিয়ে আসলে তাদেরকে এলোপাতাড়ি পিটিয়ে রক্তাক্ত জখম করে বলে থানার দায়েরকৃত অভিযোগ সুএে প্রকাশ। বর্তমানে গোলাম মোস্তাফার মাথায় ১০ টি সেলাই হয়েছে। এতে মাথা থেকে প্রছুর রক্তকরণ হয়। এ ব্যাপারে আহত পরিবারটি  পটিয়া থানার ওসি মোঃ বোরহান উদ্দীন এবং পটিয়ার  এমপি জাতীয় সংসদের মাননীয় হুইপ আলহাজ্ব শামসুল হক চৌধুরী হস্তক্ষেপ কামনা করেছে ।                                                          

চকরিয়ায় মোটর বাইক কাভার্ড ভ্যান এর চাপায় তিন ছাত্র নিহত

চকরিয়ায় মোটর বাইক কাভার্ড ভ্যান এর চাপায় তিন ছাত্র নিহত




মীর কাশেম,চকরিয়া:কক্সবাজার-চট্টগ্রাম মহাসড়কের চকরিয়ায় কাভার্ড ভ্যান চাপায় বিশ^দ্যিালয় ছাত্রসহ তিন মোটরসাইকেল আরোহী নিহত হয়েছে। রোববার বেলা সাড়ে ১২টার দিকে উপজেলার লক্ষ্যারচর ইউনিয়নের জিদ্দাবাজার এলাকায় এ দুর্ঘটনার ঘটনা ঘটে। 


নিহতরা হলেন, চকরিয়া উপজেলা হারবাং ইউনিয়নের ৭নম্বর ওয়ার্ডের অলিপুর গ্রামের মোহাম্মদ বশিরের ছেলে আমজাদ হোসেন রিফাত (২২) ও একই ইউনিয়নের ৪নম্বর ওয়ার্ডের আব্দুল হাকিমের ছেলে তারেকুর রহমান নিলয় (২২) এবং তার ছোট ভাই তানজিলুর রহমান (১৯)। 


নিহত আমজাদ হোসেন রিফাত ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের পরিসংখ্যান বিভাগের ২য় বর্ষের ছাত্র ও তারেকুর রহমান নিলয় চট্টগ্রামের ন্যাশনাল ইনস্টিটিউট অফ টেকনোলজি (এনআইটি) টেক্সটাইল ডিজাইনের ছাত্র এবং তাঁর ছোট ভাই তানজিলুর রহমান কক্সবাজার সরকারী কলেজে পড়ে। 


প্রত্যক্ষদর্শী সূত্রে জানা যায়, রবিবার বেলা দেড়টার দিকে চট্টগ্রাম থেকে মাল বোঝাই কাভার্ড ভ্যান কক্সবাজার যাচ্ছিল। বিপরীত দিক থেকে তিনজন আরোহী নিয়ে একটি মোটরসাইকেল চিরিংগা স্টেশন থেকে হারবাংয়ের দিকে যাচ্ছিল। পথিমধ্যে চট্টগ্রাম-কক্সবাজার মহাসড়কের জিদ্দাবাজার এলাকায় মোটরসাইকেল ও কাভার্ড ভ্যানের সাথে মুখোমুখি সংঘর্ষ হয়। 


এসময় মোটরসাইকেলটি কাভার্ড ভ্যানের নিচে চাপা পড়ে। পরে স্থানীয়রা আহতদের নিকটস্থ উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে নিয়ে গেলে কর্তব্যরত চিকিৎসক রিফাত, তারেককে মৃত ঘোষণা করেন। অপর আহত তানজিমুলকে চট্টগ্রাম মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে নেওয়ার পথে পদুয়া পৌঁছলে মারা যায়।


চিরিংগা হাইওয়ে পুলিশ ফাঁড়ির (আইসি) পরিদর্শক মো. আনিসুর রহমান বলেন, ‘দুর্ঘটনা কবলিত কাভার্ডভ্যান ও মোটরসাইকেল জব্দ করা হয়েছে। কাভার্ডভ্যানের চালক ও হেলপার পলাতক রয়েছে। মামলা দায়েরের প্রস্ততি চলছে।

কণ্ঠ সৈনিক আব্দুল জব্বারের তৃতীয় মৃত্যুবার্ষিকী আজ

 কণ্ঠ সৈনিক আব্দুল জব্বারের তৃতীয় মৃত্যুবার্ষিকী আজ




শিপন নাথ,চট্টগ্রাম প্রতিনিধি:- বাংলাদেশের হৃদয় তুমি- তুমি বাংলার পিতা, এখানে আমার পদ্মা মেঘলা, 

হাজার বছর পরে-আবার এসেছি ফিরে, এভাবে অসংখ্য গান উপহার দেওয়া সংগীতের জগতের অভিধান প্রয়াত স্বাধীন বাংলা বেতার কেন্দ্রের কন্ঠ সৈনিক আব্দুল জব্বারের তৃতীয় মৃত্যু বার্ষিকী আজ।


তিনি ১৯৭১ সালে বাংলাদেশের স্বাধীনতা যুদ্ধ শুরু হওয়ার পর বাংলাদেশের মুক্তিযোদ্ধাদের মনোবল ও প্রেরণা যোগাতে স্বাধীন বাংলা বেতার কেন্দ্র থেকে সালাম সালাম হাজার সালাম ও জয় বাংলা বাংলার জয়সহ অংসখ্য গানে কণ্ঠ দিয়েছেন। তার গানে অনুপ্রাণিত হয়ে অনেকেই মুক্তিযুদ্ধে অংশ গ্রহণ করেছিলেন। এছাড়া যুুদ্ধের সময়কালে তিনি প্রখ্যাত ভারতীয় কণ্ঠশিল্পী হেমন্ত মুখোপাধ্যায়কে নিয়ে মুম্বাইয়ের বিভিন্ন স্থানে বাংলাদেশের স্বাধীনতা যুদ্ধের পক্ষে জনমত তৈরিতে কাজও করেছিলেন।


তৎকালীন সময়ে কলকাতাতে অবস্থিত বাংলাদেশের মুক্তিযোদ্ধাদের ক্যাম্প ঘুরে হারমোনি বাজিয়ে গণসঙ্গীত পরিবেশন করেছেন যা মুক্তিযোদ্ধাদের প্রেরণা যুগিয়েছে।


স্বাধীনতার পরবর্তী সময়ে ১৯৭১ সালের পর বাংলাদেশ চলচ্চিত্রের মাধ্যমে এদেশের মানুষকে উপহার দিয়েছেন অসংখ্য জনপ্রিয় গান, যার কন্ঠ সুর কথা মানুষের হৃদয়ে এখনো গেঁথে আছে। এখনো তার গাওয়া গান-" তুমি কি দেখেছো কভু, জীবনের পরাজয়" বিদায় দাও গো বন্ধু তোমরা, এবার দাও বিদায়" শিকল ছিঁড়িতে না পারে খাঁচা, ভাঙ্গিতে না পারে" জীবনো আঁধারে, পেয়েছি তোমারে, চিরদিন পাশে থেকো বন্ধু" পিচ ঢালা এই পথটারে যখন দেখেছে" এভাবে চলচ্চিত্রের মাধ্যমে এদেশের মানুষকে অনেক গান উপহার দিয়েছেন শিল্পী আব্দুল জব্বার, যা এক মুহূর্তে বলে শেষ করার মতো নয়।


এই গুণী শিল্পী ২০১৭ সালের ৩০ আগষ্ট কিডনি হার্ট সহ বিভিন্ন জটিল রোগ নিয়ে বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিব মেডিকেল বিশ্ববিদ্যালয়ে চিকিৎসাধীন অবস্থায় সঙ্গীতাঙ্গনের সকলকে শোকের সাগরে ভাসিয়ে পারি জমান না ফেরার দেশে।

লিয়াকত সিনহা হত্যার দোষ স্বীকার করলেন

লিয়াকত সিনহা হত্যার দোষ স্বীকার করলেন


রিয়াজুল করিম রিজভী

ব্যুরো প্রধান, চট্টগ্রামঃসিনহা হত্যার দোষ স্বীকার করলেন লিয়াকত

সাবেক মেজর সিনহা হত্যার দায় স্বীকার করে আদালতে জবানবন্দি দিয়েছেন মামলার প্রধান আসামি টেকনাফের বাহারছড়া পুলিশ ফাঁড়ির সাবেক ইনচার্জ লিয়াকত আলী। 


রোববার (৩০ আগস্ট) বেলা ১২টার দিকে কক্সবাজারের ম্যাজিস্ট্রেট আদালতে বিচারকের খাস কামরায় তার এই স্বীকারোক্তিমূলক জবানবন্দি রেকর্ড করা হয়।

এদিন তৃতীয় দফায় তিন দিনের রিমান্ডে থাকা অবস্থায় লিয়াকতকে স্বীকারোক্তিমূলক জবানবন্দি দিতে আদালতে নেয়া হয়।


এর আগে আদালতে স্বীকারোক্তিমূলক জবানবন্দি দিয়েছেন এপিবিএনের তিন সদস্য এসআই মো. শাহজাহান, কনস্টেবল মো. রাজীব ও মো. আব্দুল্লাহ।

একই মামলায় টেকনাফ থানার বরখাস্ত হওয়া ওসি প্রদীপ কুমার দাশ ও এসআই নন্দদুলাল রক্ষিত রিমান্ডে আছেন। গত শুক্রবার (২৮ আগস্ট) তৃতীয় দফায় তাদের তিন দিনের রিমান্ডে নেয় মামলার তদন্তকারী সংস্থা র‍্যাব।

২১ বছর ধরে বই নিয়ে পথে পথে বইয়ের ফেরিওয়ালা লোকমান হোসেন

 ২১ বছর ধরে বই নিয়ে পথে পথে বইয়ের ফেরিওয়ালা লোকমান হোসেন


 



মোঃ ফিরোজ হোসাইন

রাজশাহী ব্যুরো


২১ বছর ধরে বই নিয়ে পথে পথে ..

এ অন্যরকম এক বই বিক্রেতা। অন্যভাবে বলতে পারি বইয়ের ফেরিওয়ালা।পথে-ঘাটে, হাট-বাজারে, পায়ে হেঁটে ও বাইসাইকেল করে ২১ বছর ধরে বই বিক্রি করছেন মোঃ লোকমান হোসেন ।


বয়স ষাটোর্ধ পার হলেও থেমে নেই বই বিক্রির জন্য তার এই পথচলা। শ্রমকস্টকে মেনে নিয়েই বই নিয়ে ছুটছেন তিনি। হলেও পথে ঘাটে, প্রত্যান্ত অঞ্চলে পায়ে হেটে ও হাটে বাজারে সাইকেলে করে বই বিক্রি করে সংসার চালাচ্ছেন।

লোকমান এর বইয়ের তালিকায় রয়েছে- কবিতা, ধর্মীয়, বঙ্গবন্ধুর জীবনী ও শিশুতোষ বই ও ধর্মীয় পোস্টার। এছাড়া অনেক শিক্ষনীয় বইও আছে তার বিক্রির তালিকায়। আসলে বই বিক্রিই তার জীবিকা নির্বাহের একমাত্র মাধ্যম।

লোকমান হোসেন নওগাঁ  জেলার আত্রাই  উপজেলার আমরুল কসবা  গ্রামের মৃত রমজান এর ছেলে। অল্প পড়া-লিখা  জানা মানুষ  তিনি স্থানীয় স্কুলে পড়া লিখা করতেন,সংসারে অভাব অনাটনের জন্য পড়া লিখা সম্ভব হয়নি ।সংসারের হাল ধরতে তিনি নানা মুখি কাজ করতেন।১৯৯৯ সালে থেকে তিনি বই বিক্রিতে জড়িয়ে পড়েন।

তার ঠিকানা আত্রাই  হলেও তিনি নিজ উপজেলাসহ আশেপাশের  উপজেলার বিভিন্ন গ্রামে পায়ে হেঁটে বই বিক্রি করতেন, পরে বয়স বাড়ার সাথে সাথে বই বিক্রির জন্য সঙ্গী করেন বাইসাইকেল ।

তিনি প্রায় প্রতিদিনিই ভোরে আত্রাই তার নিজ এলাকা থেকে   সাইকেল নিয়ে আত্রাই উপজেলা আশেপাশের উপজেলা যেমন বাগমারা, নাটোর,রাণীনগরের বিভিন্ন জায়গায় বই বিক্রি করেন। গ্রামে গ্রামে সাইকেলে ও পায়ে হেঁটে বই ফেরি করে বিকেল ও সন্ধ্যায় আত্রাই ফেরেন। এ ভাবে কাটে তার জীবনের ২১ টি বছর। যে সময় আবহাওয়া খারাপ থাকে, অর্থাৎ দুর্যোপূর্ণ আবহাওয়ায়ও তাকে বই নিয়ে পথ চলতে দেখা যায়।

জিজ্ঞাসা করলে লোকমান  বলেন, ‘এ ছাড়া আর উপায় কি, বই বিক্রি করেই যে আমাকে সংসার চালাতে হয়।’

আসলে বই বিক্রি ছাড়া তার আয়ের আর কোনো উৎস নেই। বই বিক্রিই তার অর্থ উপার্জনের একমাত্র উপায়। যদিও  লোকমানের পরিবারের সদস্য তার ছেলে বর্তমানে ঢাকা গার্মেন্টসে আছেন। তার সংসারে স্ত্রী ছাড়াও রয়েছে মেয়ে । মেয়ের বিয়ে দিয়েছে অনেক আগেই।

ছেলে বর্তমানে সংসারের কিছু টা হাল ধরাতে। বাবা কষ্ট করে বই ফেরি করতে নিষেধ করেন।

লোকমানকে এ ব্যপারে জিজ্ঞেস করা হলে,তিনি বলেন বর্তমানে পেশাদারিত্বের জন্য নয়,দীর্ঘ দিন ধরে এ পেশায় থাকায় নেশায় পরিনত হয়েছে।

ফুটবল খেলোয়ার ও কলেজ ছাত্র মো.সুমনের মাতা আর নেই-বিভিন্ন মহলের শোক প্রকাশ

 ফুটবল খেলোয়ার ও কলেজ ছাত্র মো.সুমনের মাতা আর নেই-বিভিন্ন মহলের শোক প্রকাশ

ডা.এম.এ.মান্নান 

টাংগাইল জেলা প্রতিনিধি:

টাংগাইলের নাগরপুর উপজেলার  দুয়াজানী কলেজ পাড়া নিবাসী, মো.বাবলু বেপাড়ীর সহধর্মিণী ও তরুন ফুটবল খেলোয়ার ও কলেজ ছাত্র মো.সুমনের সম্মানিত মা জননী মোছা.সুজনী বেগম (৩৫) ইন্তেকাল করিয়াছেন-ইন্না লিল্লাহি ওয়া ইন্না ইলাইহি রাজিউন।তিনি অনেক দিন যাবত  ডায়বেটিস সহ নানান জঠিল রোগে ভুগছিলেন। 


 আজ রবিবার,৩০ আগস্ট ২০২০ খ্রি. সকাল ১০.০০ টায় সুমনের মাতা মোছা.সুজনী বেগম কে চিকিৎসকের পরামর্শে  উন্নত চিকিৎসার জন্য ঢাকা নেওয়ার পথে মারা যান।মরহুমার জানাযা নামায বাদ আসর দুয়াজানী কলেজ পাড়া জামে মসজিদ মাঠে অনুষ্ঠিত হবে। মৃত্যুকালে মরহুমার বয়স ৩৫ ছিল। তিনি স্বামী সহ এক ছেলে ও দুই মেয়ে,ভাই,বোন,শাশুরী,বাতিজা ও   সহ অসংখক শুভাকাঙ্ক্ষী রেখে গেছেন।


সুমনের মাতা ও বাবলু  বেপাড়ীর সহধর্মিণী মোছা.সুজনী বেগমের  মৃত্যুতে গভীর শোক প্রকাশ ও মরহুমার জন্য দোয়া প্রার্থনা করেছেন দুয়াজানী কলেজ পাড়ার সকল স্তরের আত্বীয় স্বজন ও প্রতিবেশীবৃন্দ। 


দুয়াজানী কলেজ পাড়া জামে মসজিদ কমিটির সভাপতি আলহাজ্ব অধ্যাপক এম.এ.সালাম বলেন-সুমনের মাতা অনেক দিন যাবত নানান জঠিল রোগে ভুগছিলেন। আজ তিনি আমাদের মাঝে নেই।আমরা গ্রামবাসী গভীরভাবে শোকাহত।  মহান আল্লাহ যেন তাকে মাফ করে জান্নাত নসিব করেন এবং তার স্বামী,সন্তান, মেয়ে ও পরিবর্গকে শোক সইবার তৌফিক দান করেন, আমিন।

বাংলাদেশ মহিলা ঐক্য পরিষদ দিনাজপুরের দ্বি-বার্ষিক সম্মেলন অনুষ্ঠিত

বাংলাদেশ মহিলা ঐক্য পরিষদ দিনাজপুরের  দ্বি-বার্ষিক সম্মেলন অনুষ্ঠিত




মামুনুর রশিদ,দিনাজপুর প্রতিনিধি :বাংলাদেশ হিন্দু বৌদ্ধ খৃষ্টান ঐক্য পরিষদের অঙ্গসংগঠন বাংলাদেশ মহিলা ঐক্য পরিষদ দিনাজপুর জেলা শাখার দ্বি-বার্ষিক সম্মেলন অনুষ্ঠিত হয়েছে।

আজ রবিবার সকালে দিনাজপুর প্রেসক্লাব মিলনায়তনে বাংলাদেশ মহিলা ঐক্য পরিষদ জেলা শাখার আয়োজনে দ্বি-বার্ষিক সম্মেলনে প্রধান অতিথি ছিলেন দিনাজপুর ১ আসনের এমপি মনোরঞ্জনশীল গোপাল। উদ্ধোধনী পর্বে জেলা কমিটির আহবায়িকা গৌরী চক্রবর্তীর সভাপতিত্বে সম্মেলনে প্রধান বক্তা ছিলেন বাংলাদেশ হিন্দু বৌদ্ধ খৃষ্টান ঐক্য পরিষদের সাংগঠনিক সম্পাদক স্বপ্না রানী বিশ্বাস,বিশেষ অতিথি জেলা কমিটির সভাপতি সুনীল চক্রবর্ত্তী,বাংলাদেশ­ পুজা উদযাপন পরিষদের সভাপতি স্বরূপ বকসী বাচ্চু।

দিনব্যাপী সম্মেলনের দ্বিতীয় পর্বে জেলার বিভিন্ন উপজেলা থেকে আগত কাউন্সিলররা আগামী নেতৃত্ব নির্বাচন করেন।

এরশাদের গৌরব উজ্জল ইতিহাস মানুষকে জানাতে হবে-ব্যারিস্টার শামিম এমপি

এরশাদের গৌরব উজ্জল ইতিহাস মানুষকে জানাতে হবে-ব্যারিস্টার শামিম এমপি





মামুনুর রশিদ,দিনাজপুর প্রতিনিধিঃ  দিনাজপুর জেলা জাতীয় পার্টির আয়োজনে জেলা জাতীয় পার্টির নেতৃবৃন্দের সহিত সাংগঠনিক মতবিনিময় ও আলোচনা সভা অনুষ্ঠিত হয়েছে। দিনাজপুর প্রেসক্লাব এর এম আব্দুর রহিম মিলনায়তনে অনুষ্ঠিত উক্ত অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি ছিলেন জাতীয় পার্টি কেন্দ্রীয় প্রেসিডিয়াম সদস্য ও রংপুর বিভাগীয় অতিরিক্ত মহাসচিব ব্যারিস্টার শামিম হায়দার পাটোয়ারী এমপি। বিশেষ অতিথি ছিলেন কেন্দ্রীয় কমিটির ভাইস চেয়ারম্যান ও জেলা জাপার সাধারণ সম্পাদক আহমেদ শফি রুবেল, কেন্দ্রীয় সাংগঠনিক সম্পাদক ও জেলা জাপার যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক বোচাগঞ্জ উপজেলা পরিষদ চেয়ারম্যান এ্যাড. মোঃ জুলফিকার হোসেন। বিশেষ বক্তা ছিলেন কেন্দ্রীয় কমিটির সদস্য ও জেলা জাপার সহ-সভাপতি এ্যাড. নুরুল ইসলাম (৪)। উক্ত অনুষ্ঠানে জেলা জাপার সিনিয়র সহ-সভাপতি এ্যাড. মোঃ নুরুল ইসলাম (১) এর সভাপতিত্বে ও জেলা জাপার যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক এ্যাড. সুধীর চন্দ্র শীলের সঞ্চালনায় অন্যান্যদের মধ্যে বক্তব্য রাখেন জেলা জাপার সহ-সভাপতি এ্যাড. আমিনুল হক পুতুল, মোঃ সাইফুল্লাহ, সহ-সাধারণ সম্পাদক ডা. মোঃ আনোয়ার হোসেন, মহিলা সম্পাদিকা ও কেন্দ্রীয় নেত্রী পৌর কাউন্সিলর রোকেয়া বেগম লাইজু, জেলা যুব সংহতির সাধারণ সম্পাদক মোঃ নাসিম খান পিরু, জেলা স্বেচ্ছাসেবক পার্টির সদস্য সচিব মীর মোঃ আনিসুজ্জামান মিলন, কেন্দ্রীয় কমিটির সদস্য মোঃ সোলায়মান সামি, জেলা ছাত্র সমাজের সভাপতি মোঃ ফরহাদ হোসেন, পার্বতীপুর উপজেলা জাতীয় পার্টির সভাপতি মোঃ কাজী আব্দুল গফুর, বীরগঞ্জ উপজেলা জাপার সাধারণ সম্পাদক মোঃ শাহিনুর ইসলামসহ অন্যান্য জেলা জাপার নেতৃবৃন্দ। প্রধান অতিথির বক্তব্যে এমপি ব্যারিস্টার শামিম হায়দার পাটোয়ারী বলেন এরশাদ সরকারের আমলে মানুষ শান্তিতে ছিল, মানুষ এখন একটি ভালো রাজনৈতিক প্লাটফর্ম খুঁজছে। জাতীয় পার্টি একদিন ক্ষমতায় আসবে বলে আমরা বিশ্বাস করি। তিনি বলেন জাতীয় পার্টি একটি সম্ভাবনাময় দল। বহু মানুষ আওয়ামী লীগ ও বিএনপি ছেড়ে জাতীয় পার্টিতে যোগদান করতে আগ্রহী। এরশাদের গৌরব উজ্জল ইতিহাস মানুষকে জানাতে হবে। দেশের জন্য হুসেইন মুহাম্মদ এরশাদ অনেক কিছু করে গেছেন। এরশাদ ক্ষমতায় থাকাকালে উপজেলা পরিষদ গঠন করেছেন, জাপা দেশ ও জনগণের কল্যাণের জন্য চিন্তা করছে। তিনি বলেন, রাজনৈতিক প্রেক্ষাপটে আমরা সবাই সুসংগঠিত থাকলে এরশাদ বাংলাদেশকে নিয়ে যে স্বপ্ন দেখেছিলেন তা একদিন অবশ্যই বাস্তবায়িত হবে। অনুষ্ঠানের শুরুতে জেলা জাপার পক্ষ থেকে সাধারণ সম্পাদক প্রধান অতিথিকে ফুল দিয়ে বরণ করেন এবং অন্যান্য নেতৃবৃন্দ প্রধান অতিথিকে ফুল দিয়ে বরণ করে নেন।

দিনাজপুরে শ্রদ্ধা ও ভালবাসায় সিক্ত হলেন ভাইস চেয়ারম্যান স্বর্গীয় কিশোর কুমার রায়

দিনাজপুরে শ্রদ্ধা ও ভালবাসায় সিক্ত হলেন ভাইস চেয়ারম্যান স্বর্গীয় কিশোর কুমার রায়



মামুনুর রশিদ,দিনাজপুর প্রতিনিধিঃ শ্রদ্ধা ও ভালবাসায় সিক্ত হলেন সাদা মনের মানুষ দিনাজপুর সদর উপজেলা পরিষদের দুই বারের নির্বাচিত ভাইস চেয়ারম্যান ও শহর যুবলীগের সাবেক আহবায়ক আওয়ামীলীগ নেতা স্বর্গীয় কিশোর কুমার রায়। ৩০ আগষ্ট সকাল ১০টায় দিনাজপুর ইনস্টিটিউট মাঠে সর্বস্তরের মানুষ শ্রদ্ধা নিবেদন করে। প্রথমে জাতীয় সংসদের হুইপ ইকবালুর রহিম এমপির পক্ষ থেকে শ্রদ্ধা নিবেদন করা হয়। দিনাজপুর-১ আসনের সংসদ সদস্য মনোরঞ্জনশীল গোপাল শ্রদ্ধাঞ্জলী অর্পন করেন। এ ছাড়া শ্রদ্ধাঞ্জলী অর্পন করেন দিনাজপুর সদর উপজেলা পরিষদ, শহর ও কোতয়ালী আওয়ামীলীগ, ছাত্রলীগ, স্বেচ্ছাসেবকলীগ, যুবলীগ, মহিলা লীগ, পুজা উদযাপন পরিষদ জেলা শাখাসহ রাজনৈতিক, সামাজিক  ও সংস্কৃতিক সংগঠনের নেতৃবৃন্দ।  

এ সময় উপস্থিত ছিলেন দিনাজপুর সদর উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান ও সদর উপজেলা আওয়ামীলীগের সভাপতি মোঃ ইমদাদ সরকার, সদর উপজেলা নির্বাহী অফিসার মোঃ মাগফুরুল হাসান আব্বাসী, অতিরিক্ত পুলিশ সুপার (সদর সার্কেল) সুজন সরকার, শহর আওয়ামীলীগের ভারপ্রাপ্ত সভাপতি রায়হান কবীর সোহাগ, সাধারন সম্পাদক এস এম খালেকুজ্জামান রাজু, জেলা যুবলীগের সভাপতি রাশেদ পারভেজ, জেলা জাতীয় পার্টির সাধারন সম্পাদক আহমেদ শফি রুবেল, জেলা যুবলীগের সাবেক সভাপতি এড. দেলোয়ার হোসেন, ইউপি চেয়ারম্যান মমিনুল ইসলাম, জিয়াউর রহমান জিয়া, অসোক কুমার রায়, শহর যুবলীগের সভাপতি আশরাফুল আলম রমজান, সাধারন সম্পাদক সোহরাব হোসেন, শিক্ষক নেতা মাাতলুবুল মামুন, আন্ত: শিক্ষাবোর্ড কর্মচারী ফেডারেশনের যুগ্ম মহাসচিব মাসুদ আলম, স্বেচ্ছাসেবকলীগ নেতা তছলিম উদ্দিন, রাকিবুল হাসান সবুজ, ছাত্রলীগ নেতা আহসানুজ্জামান চঞ্চল  প্রমুখ। শ্রদ্ধাঞ্জলী শেষে কিশোর কুমার রায়কে ফুলতলা কেন্দ্রীয় শশ্মাণ ঘাটে অন্ত্যেষ্টিক্রিয়া সম্পন্ন করা হয়।

দৌলতপুরে টাকা আত্মসাৎ করার জন্য হত্যার চেষ্টা করা হয়েছে : থানায় অভিযোগ

দৌলতপুরে টাকা আত্মসাৎ করার জন্য হত্যার চেষ্টা করা হয়েছে : থানায় অভিযোগ


কুষ্টয়া জেলা প্রতিনিধিঃ

কুষ্টিয়া দৌলতপুর উপজেলার রিফায়েতপুর ইউনিয়নের ব্যবসায়ীক পাটনারের টাকা আত্মসাৎ  করার উদ্দেশ্যে হত্যার চেষ্টা করেছে বলে জানাগেছে।


এ বিষয়ে ভুক্তভোগী মেহেরপুর উপজেলার গাংনী উপজেলার  ছাতিয়ান গ্রামের মরজেম হোসেন এর ছেলে মামুন জানান,আমি দির্ঘদিন যাবত অস্টিয়া   দেশে থাকি এব আমি সেই দেশের নাগরিকত্ব পেয়েছি। 


আমার রিফায়েতপুর ইউনিয়নের  ঝাউদিয়া উত্তর পাড়া গ্রামে বড়  বোনের বিয়ে হয়েছে সেই সুবাদে মাসুদ রুমি ও রবিউল ইসলাম আমার আত্মীয়।তারা আমাকে যুক্তি দেন আপনি তো বাহিরে আছেন,  আমাদের এখানে মুরগী ও গরুর খামার করলে ব্যপক লাভোবান হওয়া যাবে। যদি আপনি চান তাহলে আপনি টাকা দিলে খামার তৈরি করবো,  আমরা দেখাশোনা করবো কিন্তু খামারে যে লাভ হবে তা জন প্রতি ২৫% হারে ভাগ হবে । 


তাদের কথা মত আমি খামারে যে অর্থ ব্যয় হয়, তার ৮০ পারসেন্ট আমি দিয়েছি।  খামার তৈরির পরে আমি দেশে ছুটিতে এসে বুঝতে পারি আমার টাকা আত্মসাৎ করা হয়েছে। তারা বিষয়টি স্থানীয় ভাবে বসে সমাধানের জন্য আশ্বাসদেন। 


আমি তাদের কথা মত গত ২৩/৮/২০ ইং তারিখে দৌলতপুরে আসি। আমি দৌলতপুর থেকে রাত অনুমানিক  ১০: ৩০ মিনিটের      সময় ঝাউদিয়া উত্তরপাড়ায় যাওয়ার সময় আহসান নগর কারীগরী কলেজের কাছে পৌঁছালে আগে থেকে পরিকল্পিত ভাবে আমাকে হত্যার উদ্দেশ্যে ওত পেতে থাকা মাসুদ রুমি ও রবিউল ইসলাম সহ আর ৫ থেকে ৬ জন ব্যক্তি আমার গাড়ীর গতিরোধ করে হত্যার উদ্দেশ্যে রড় লাঠি দিয়ে মারপিট করে এবং আমার গলায় দড়ি দিয়ে শ্বাসরোধ করে হত্যার চেষ্টা করে। আমি গ্যান হারিয়ে ফেললে তারা মনে করেন  আমার মৃত্যু নিশ্চিত হয়েছে পরে  রাস্তার পাশে ধান খেতে ফেলে রেখে চলে যায়।



এ বিষয়ে আহত মামুনের বোন জানান,আমার ভাই মামুনের ফিরতে দেরি হলে আমি তার মুঠোফোনে ফোন দিতে থাকি এক পর্যায়ে এক জন অপরিচিত ব্যক্তি ফোন ধরে বলেন এই ফোন ব্যবহার কারি ব্যক্তি আপনার কে হয়।


আমি যখন বলি এটা আমার ভাই তখন তারা জানান আপনার ভাই মরে পড়ে আছে। তাদের দেওয়া তথ্য মতে ঘটনা স্থান থেকে পুলিশ ও  আমার মামুন কে  উদ্ধার করে দৌলতপুর হাসপাতালে ভর্তি করি পরে তার অবস্থার অবনতি হলে তাকে উন্নত চিকিৎসার জন্য ঢাকায় রেফাড করেন। আমার ভাই বর্তমানে ঢাকায় চিকিৎসাধীন আছে। বিষয়টি তদন্ত করে বিচার দাবি করছি।


এ বিষয়ে মাসুদ রুমি র কাছে জানতে চাইলে তিনি  পাটনারে ব্যবসার কথা স্বীকার করেন, তবে তাদের বিরুদ্ধে যে থানায় লিখিত অভিযোগ করা হয়ে সেই বিষয়ে তিনি জানান,আমার দৌলতপুরে বসা ছিলাম আমরা আসার আগেই মামুন চলে আসে আমরা তাকে মারি নাই।


এমন অবস্থায়  মামুনকে উদ্ধার কারী প্রত্যক্ষদর্শী   জানান, রাস্তা দিয়ে একটি লোক যাওয়া সময় হঠাৎ চিৎকার দিতে থাকে আপনারা গ্রাম বাসি এগিয়ে আসেন এখানে এক ব্যক্তি আহত অবস্থাতে পড়ে আছে। আমরা ছুটে এসে তাকে কাদামাখা অবস্থাতে উদ্ধার করে দেখি দার গলাতে দড়ি দিয়ে ফাঁস দেওয়া। তাড়াতাড়ি করে আমরা দড়িটা হাসুয়া দিয়ে কেটে দিই। পরে পুলিশ ও আত্মীয়রা এসে তাকে উদ্ধার করে নিয়ে যায়।


এ বিষয়ে দৌলতপুর থানা পুলিশ এস আই রোকন জানান,আমি মামুনকে ঘটনা স্থান থেকে  উদ্ধার করি। তারা থানায় একটি লিখিত অভিযোগ করেছে তদন্ত করে ব্যবস্থা নেওয়া হবে।

মনোহরগঞ্জ প্রবাসী ছেলের বিশাল অট্টালিকা গর্ভবতী মায়ের জায়গা হয়নি

 মনোহরগঞ্জ প্রবাসী ছেলের  বিশাল অট্টালিকা গর্ভবতী  মায়ের জায়গা হয়নি



মোঃ রবিউল হোসাইন সবুজ, কুমিল্লা প্রতিনিধিঃ-


মনোহরগঞ্জ উপজেলার ১১ নং বিপুলাসার ইউনিয়নের সাইকচাইল গ্রামে ছেলের এই বিশাল অট্টালিকা ও রাজপ্রাসাদে ও জায়গা হয়নি প্রিয় জনম দুঃখি মা জননীর। যে, মা দীর্ঘ ১০ মাস ১০ দিন নিজের ছেলেকে অতি কষ্টে গর্ভে ধারণ করেছেন। যেই মা নিজে না খেয়ে ছেলেকে খাইয়েছেন।


আজ সেই মাকে রাতের আঁধারে নিজের গর্ভে ধারন করা মা কে বেদড়ক  মারধর ও অকথ্য ভাষায় গালিগালাজ করে রাত ২ টায়  রাস্তায় বের করে দেয় ওনার ছেলে খোকা  ড্রাইভার, (প্রবাসী)



এ ঘটনা হয় মনোহরগঞ্জ উপজেলার ১১ নং বিপুলাসার ইউনিয়নের সাইকচাইল গ্রামের মৃত মোঃ শামসুল হক মেম্বার বাড়ী।পিতা আব্দুল কাদেরের ছেলে মোঃ খোকা  ড্রাইভার, (প্রবাসী)


মা জননী এই ভাবেই নিঃস্ব হয়ে পড়ে আছেন রাস্তার এক পাশে।

গ্রামবাশী এর তীব্র নিন্দা ও প্রতিবাদ জানাচ্ছেন-

এবং সেই সাথে এই ধরণের আচরনের জন্য ওই ছেলেকে ও ছেলের সাথে আর যারা জড়িত আছেন,তাদের সকলকেই আইনের আওতায় এনে উপযুক্ত শাস্তির আবেদন জানাচ্ছেন।

নোয়াখালীতে পুলিশের বয়ে পালাতে গিয়ে কিশোর গ্যাংগ যুবকের মৃত্যু, আহত-১,আটক -৪

নোয়াখালীতে পুলিশের বয়ে পালাতে গিয়ে কিশোর গ্যাংগ যুবকের মৃত্যু, আহত-১,আটক -৪



নোয়াখালী প্রতিনিধি- মোঃরুবেল হোসাঈন শুভ।

নোয়াখালীর সদর উপজেলায় পুলিশের উপস্থিতিতে পালাতে গিয়ে রাজু নামে( ২০) এক যুবকের মৃত্যু হয়েছে। রাজু নোয়াখালী পৌরসভা ২নং ওর্য়াডের চন্দ্র পর এলাকার মোঃশরীফের ছেলে।গুরুতর  আহত হয়েছে একই এলাকার কিরণ মিয়ার ছেলে এনামুল হক বাবলু।তাকে উন্নত চিকিৎসার জন্য ঢাকা প্রেরন করা হয়েছে। পুলিশ জানায় তারা দুজনেই একাধিক মামলার আসামি। তিনি আরও জানান গত কিছু দিন আগে মাইজদী শহরের পূর্বে চন্দপুর আহমেদ মন্ঞ্জিলের নিচ তলা থেকে কিশোর গ্যাংগের এক সদস্যের একটি মোটরসাইকেল চুরি হয়।মোটরসাইকেল চুরির অভিযোগে আতাউল নামক(৩১) এক যুবকে   অপহরন করে আহমদ মন্ঞ্জিলের চার তলায় নিজে বেধরক মারধর করে। খবর পেয়ে পরিবারের এক সদস্য ৯৯৯ নম্বরে ফোন করলে মাইজদী থানা থেকে পুলিশ এসে অভিযান চালায়।এতে পুলিশের বয়ে তারা খেয়ে পিছনের পাইপ দিয়ে নামতে গিয়ে ঘটনাস্থলে এক যুবকের মৃত্যু হয়,আহত হয়-১এবং আরো চার জনকে গ্রেফতার করা হয়।

সজীব ওয়াজে জয় পরিষদ তারকান্দা উপজেলা শাখার পক্ষ থেকে দর্শনীয় স্থান ও হাওড় ভ্রমণ

 সজীব ওয়াজে জয় পরিষদ তারকান্দা উপজেলা শাখার পক্ষ থেকে দর্শনীয় স্থান ও হাওড় ভ্রমণ

স্টাফ রিপোর্টার : আর.জে মিজানুর রহমান ইমন : সজীব ওয়াজেদ জয় পরিষদ ময়মনসিংহ জেলার তারাকান্দা উপজেলা শাখার পক্ষ থেকে হাওড় ভ্রমন ও বর্ডার সীমান্তলী গজনী অবকাশ মধুটিলা ইকো পার্ক সহ আরো বিভিন্ন দর্শনীয় স্থান পরিদর্শন করেন তারাকান্দা উপজেলা কমিটির নেত্ববৃন্দ ।


২৮ই আগষ্ট রোজ শুক্রবার সকাল ৭: ঘটিকায় এক সাথে ৫০টি মোটরসাইকেলে তারাকান্দা উপজেলা কমিটি ও বিভাগীয় কমিটি সহ বিভিন্ন ইউনিয়ন কমিটির নেত্ববৃন্দ ১০০জন লোক আমাদের এই ভ্রমণে অংশ গ্রহন করেন । উক্ত ভ্রমণে নেত্বত্ব দিয়েছেন, সজীব ওয়াজেদ জয় পরিষদ তারাকান্দা উপজেলা শাখার সভাপতি বাবুল চন্দ্র সূত্রধর ও সাধারণ সম্পাদক সাংবাদিক আর.জে মিজানুর রহমান ইমন । 


আমাদের ভ্রমণ সঙ্গী হিসেবে ছিলেন, তারাকান্দা উপজেলা প্রেসক্লাবের সভাপতি ও তারাকান্দা উপজেলা আওয়ামী লীগের শিক্ষা ও মানব সম্পদ উন্নয়ন বিষয়ক সম্পাদক সাংবাদিক জনাব নুরুজ্জামান সরকার বকুল মাষ্টার, সজীব ওয়াজেদ জয় পরিষদ ময়মনসিংহ বিভাগীয় কমিটির সভাপতি মির্জা আল মুরাদ বেগ, সাধারণ সম্পাদক রুবেল শিকদার, সাংগঠনিক সম্পাদক আকিব আহমেদ রুবেল 


তারাকান্দা উপজেলা কমিটির নেত্ববৃন্দরা হলেন, সভাপতি বাবুল চন্দ্র সূত্রধর, সাধারণ সম্পাদক সাংবাদিক আর.জে মিজানুর রহমান ইমন, সিনিয়র সহ-সভাপতি এ.আর মনিরুজ্জামান মানিক, সহ-সভাপতি আজগর আলী, যুগ্ন সাধারণ সম্পাদক মোঃ মরম মিয়া, সহ-সভাপতি আরিফুল ইসলাম ফকির, সহ-সভাপতি সোহেল মিয়া, সাংগঠনিক সম্পাদক মোঃ মিজানুর রহমান তালুকদার, সহ-সাংগঠিনক সম্পাদক, মোঃ ইয়াকুব আলী শেখ, সাংস্কৃতিক বিষয়ক সম্পাদক মোঃ হান্নান মিয়া, অর্থ বিষয়ক সম্পাদক সাহাব উদ্দিন, ধর্ম বিষয়ক সম্পাদক হোসাইন আহমাদ রেজা, সহ-প্রচার সম্পাদক মাহফুজুর রহমান আকাশ, গণ সংযোগ বিষয়ক সম্পাদক ফকির শামীম আহমেদ অপু, শিল্প ও বাণিজ্য বিষয়ক সম্পাদক মোঃ মিলন তালুকদার সহ আরো অনেকেই ।

ইমাম মোয়াজ্জেনদের বেতন সরকারীকরণের দাবী বাংলাদেশ ইমাম সমিতির সভাপতি

 ইমাম মোয়াজ্জেনদের বেতন সরকারীকরণের দাবী বাংলাদেশ ইমাম সমিতির সভাপতি



মিঠুন কুমার রাজ, 

স্টাফ রিপোর্টার।


 অনলাইন ভিত্তিক আলোচনায় ইমাম মোয়াজ্জেনদের বেতন সরকারীকরণ করার জন্য সময়ের আলাপন অনুষ্ঠানে ব্যাপক আলোচনা হয়।


বাংলাদেশের প্রায় ৩ লক্ষ মসজিদ রয়ছে। সেখানে ইমাম ও মোয়াজ্জেম দের চাকরির কোন উল্লেখ যোগ্য নিয়ম নীতি নেই।


৯৫ শতাংশ মুসলিম দেশের সবচেয়ে গুরুত্বপূর্ণ প্রতিষ্ঠান মসজিদ সেই মসজিদের ইমামদের চাকরির দিকে খেয়াল করছেন না কোন সরকারই।


এ বিসয় সময়ের আলাপন নামক লাইফ প্রোগ্রামে বাংলাদেশ ইমাম সমিতির সভাপতি মাওলানা লুতফুল রহমান এর উপস্থিততে বিস্তারিত আলোচনা করেন।


মতিউর রহমান শাহীনে সঞ্চালনায় অনুষ্ঠানটি পরিচালিত হয় অনুষ্ঠানে আরও উপস্থিত ছিলেন যুগান্তরের সিনিয়র রিপোর্টার এস এম ফারুক।


এস এম ফারুক বলেন মসজিদের ইমাম মোয়াজ্জেন দের বেতন ১০ টাকা ৫ টাকা করে উঠিয়ে মাসিক বেতন কালেকশন করা হয় যা একজন ইমামের জন্য মোটেই উপযোগী নয়। দেশের সর্বোচ্চ সম্মানিত প্রেসার সম্মানিত যেন সবচেয়ে নিম্নমানের এটাই মনে হচ্ছে তাই বর্তমান সরকারের কাছে জোর অনুরোধ জানিয়েছে সঞ্চালক মতিউর রহমান শাহীন যেতে ইমাম-মুয়াজ্জিনদের চাকরি জাতীয়করণ করা হয়।


মাওলানা লুৎফর রহমান বলেন ইমাম-মুয়াজ্জিনদের বিল বেতন কার্যকারী করে মাননীয় প্রধানমন্ত্রী ইতিহাসের এক বিরল দৃষ্টান্ত হয়ে থাকবেন বলে মনে করেন ইতিমধ্যেই এ ধরনের উদ্যোগ গ্রহণ করেছেন বলে মাওলানা লুৎফর রহমান জানিয়েছেন। এবং মাননীয় প্রধানমন্ত্রী যথেষ্ট আন্তরিক রয়েছেন।


মতিউর রহমান শাহিন সময়ের আলাপন এর মাধ্যমে জোরালো দাবি জানিয়েছেন যাতে অবহেলিত ইমাম মোয়াজ্জেন দের বেতন সরকারিকরণ করে ইসলামের ভাবমূর্তি রক্ষা করেন ইমাম সমাজ দের মুখে হাসি ফোটান।

হবিগঞ্জে ইয়াবা দিয়ে এক ব্যবসায়ীকে ফাঁসানোর নাটক

 হবিগঞ্জে ইয়াবা দিয়ে এক ব্যবসায়ীকে ফাঁসানোর নাটক



লিটন পাঠান, হবিগঞ্জ জেলা প্রতিনিধিঃহবিগঞ্জ জেলা মাধবপুর উপজেলায় ইয়াবা নাটক সাজিয়ে এক ফার্নিচার ব্যবসায়ীকে গ্রেপ্তারের ফন্দি ভন্ডুল করে দিয়েছে জনতা। এই ঘটনায় নানা আলোচনা সমালোচনা এখন  মাধবপুর উপজেলা জুড়ে, ফার্নিচার ব্যবসায়ী আব্দুল কাইয়ুমের বাড়ি মাধবপুর উপজেলার ছাতিয়ান ইউনিয়নের এখতিয়ারপুর গ্রামে। তিনি ব্যবসা করেন একই উপজেলার নোয়াপাড়া ইউনিয়নের শাহপুর নতুন বাজারে। ব্যবসার পাশাপশি তিনি পরিবেশ দুষন  রক্ষায় আন্দোলনের সাথে জড়িত। মাধবপুরের শিল্প এলাকায়  মার লিমিটেড নামক একটি কোম্পানীর বর্জে এলাকার পরিবেশ দীর্ঘদিন ধরে নষ্ট করায় এলাকাবাসীদের সাথে ব্যবসায়ী কাইয়ুম প্রতিবাদ জানিয়ে আসছেন।


কাইয়ুম জানান শুক্রবার (২৮ আগষ্ট) বিকালে শাহপুর গ্রামের শুকুর আলীর ছেলে মিলন (৩২) ও মুক্তার মিয়ার ছেলে জাবেদ (২৭) নামে দুই যুবক তার দোকানে যায়। তারা ফার্নিচার কেনার নামে দাম দর জিঞ্জাসা করতে থাকে। ১০/১৫ মিনিট অবস্থানের পর তারা দোকান থেকে বের হন। রাত অনুমান সাড়ে ৯টায় মাধবপুর থানার সাদা পোষাকদারি তিন এসআই আহাদ, ইসমাইল ও এনামুল ব্যবসায়ী কাইয়ুমের দোকানে যান। ফার্নিচারের ব্যবসার আড়ালে তিনি ইয়াবা ব্যবসার করছেন বলেই আর ঘরের কোথাও তল্লাশী না করে কাইয়ুমের দোকানের সাটারের নীচ থেকে একটি পরিত্যক্ত সিগারেটের প্যাকেট বের করে জানতে চান।


এর ভেতরে কি আছে কাইয়ুম কিছুই জনেন না জানালে পুলিশ সিগারেটের প্যাকেট খুলে ৪০টি ইয়াবা ট্যাবলেট দেখান। এনিয়ে পুলিশের সাথে তার তর্ক বিতর্ক শুরু হলে অন্যান্য ব্যবসায়ী ও স্থানীয় লোকজন জড়ো হন, তারা দাবি করেন কাইয়ুম ইয়াবা ব্যবসায়ী নন এছাড়া একজন পরিবেশবাদি। এমতাবস্থায় এসআই ইসমাইল একটি কাগজ বের করে জব্দ তালিকার জন্য দস্তখত করতে উপস্থিত, কয়েকজনকে অনুরোধ করেন এতে কেউ রাজি হননি তিন এসআই কাইয়ুমকে দোকানে রেখে। 


উদ্ধার করা ইয়াবা নিয়ে চলে যেতে চাইলে স্থানীয় লোকজন তারা পুলিশ কি না চ্যালেঞ্জ করেন। মাধবপুর থানার ওসিকে বিষয়টি জানালো হলে এ এস আই বিল্লাল কয়েকজন কনষ্টেবল নিয়ে ঘটনাস্থলে হাজির হন। স্থানীয়দের তোপের মুখে এএসআই বিল্লাল ব্যবসায়ী কাইয়ুম ইয়াবা ব্যবসায়ী নন বলে মেনে নেন। কাইয়ুম কারোর ষড়যন্ত্রের শিকার বলে স্থানীয়দের আশ্বস্থ করে তিন এসআইকে নিয়ে যান।


ঘটনার প্রতিবাদে রাতে এলাকাবাসী ট্রাকযোগে মাধবপুর থানায় হাজির হন। তারা ওসির বরাবরে  এ বিষয়ে একটি অভিযোগ করেন। অভিযোগে ওই তিন এসআইয়ের নাম উল্লেখ করতে চাইলে ওসি ইকবাল হোসেন তা থেকে বিরত থাকার অনুরোধ করেন। ফলে পুলিশের নাম বাদ দিয়ে কাইয়ুম ঘটনার বিস্তারিত জানিয়ে দুই যুবকের বিরুদ্ধে অভিযোগ করেছেন কাইয়ুম আরো জানান। 


পরিবেশ দুষন করছে এ মর্মে মার কোম্পানির বিরুদ্ধে প্রতিবাদ জানিয়ে আসছি। তিনি সন্দেহ করছেন মার লিমিটেড কর্তৃপক্ষ তাকে নাজেহাল করার জন্য এলাকার কিছু খারাপ প্রকৃতির লোককে নিয়ে  তাকেসহ অন্যান্য প্রতিবাদীদেরকে বিপদে ফেলার ষড়যন্ত্র করছে, ২৮-আগষ্টের ঘটনাটি ষড়যন্ত্রেরই বহিঃপ্রকাশ ওসি ইকবাল হোসেন বলেন।


গোপনে খবর পাওয়া গিয়েছিল কাইয়ুম ইয়াবা ব্যবসা করছেন। কিন্তু পরবর্তী জানতে পারলাম মার কোম্পানির বিরুদ্ধে প্রতিবাদ করায় তাকে ষড়যন্ত্র করে ফাঁসানোর চেষ্টা করা হয়েছিল। কাইয়ুমের অভিযোগটির তদন্ত করা হচ্ছে। সাদা পোশাকে যাওয়ার কারন কি জানতে চাইলে ওসি প্রথমে অস্বীকার করেন। পরে তিনি জানান ওই তিন এসআই সাদা পোশাকে থাকলেও দূরে পোশাকদারি পুলিশ ছিল।


পুলিশ সুপার মোহাম্মদ উল্ল্যা বলেন মাদকের খবর পেলে  তো পুলিশ ঘটনাস্থলে তো যাবেই। প্রাথমিক তদন্তে জানা গেছে কাইয়ুম একজন ভাল মানুষ। তিনি ইয়াবার সাথে জড়িত নন। পরিবেশ নিয়ে কাজ করেন বলে কেউ তাকে ফাঁসাতে চেয়েছিল। এ ব্যাপারে বাপা হবিগঞ্জ জেলা শাখার সাধারন সম্পাদক তোফাজ্জল সোহেল এক বিবৃতিতে জানান, স্থানীয় পরিবেশ ও সমাজকর্মী  আব্দুল কাইয়ুম শিল্পবর্জ্য দূষণের।


বিরুদ্ধে আন্দোলন করছেন কয়েক বছর ধরে। তার কণ্ঠ রোধ করার জন্য নানান সময় হুমকি ধমকি এমনকি মাদক বাবসায়ী সাজানোর অপচেষ্টা অত্যন্ত ঘৃণিত কাজ। হবিগঞ্জ জেলার মাধবপুর ও সদর  উপজেলার বিভিন্ন স্থানে কয়েক বছর ধরে অনেকগুলো শিল্প কারখানা গড়ে উঠেছে। কিন্তু খুবই আশ্চর্যজনক বিষয় হচ্ছে ঐসব শিল্প কারখানায় বেশিরভাগেরই কোন সুষ্ঠু বর্জ্য ব্যবস্থাপনা কার্যকর হয়নি।


বেশীর ভাগ কারখানা থেকেই তাদের বর্জ্য পদার্থ শোধনাগারের মাধ্যমে পরিশোধিত না করে উন্মুক্ত স্থানে অথবা খাল-বিল, নদীতে ছেড়ে দেয়া হচ্ছে। আর কারখানার নিক্ষিপ্ত বর্যে পাশবরতি গ্রামসমূহের মানুষকে চরম দুগর্ন্ধময় ও দূষিত পানির সাথে বসবাস করতে বাধ্য হচ্ছে । এ থেকে মুক্তির জন্য এলাকাবাসী এবং পরিবেশবাদী সংগঠনগুলোকে আন্দোলন করতে হচ্ছে।


যোগাযোগ করা হলে বেলার প্রধান নির্বাহী অ্যাডভোকেট সৈয়দা রিজওয়ানা হাসান বলেন, ঘটনাটি আমি শুনেছি। তিনি নিন্দা প্রকাশ করে বলেন, কাইয়ুম পরিবেশ রক্ষায় কাজ করেন। তিনি জানান মার লিমিটেড তার কারখানা পরিদর্শন করে পরিবেশের ছাড়পত্র দেওয়ার জন্য সরকারকে বিবাদী করে হাইকোর্টে রিট করেছে। মার লিমিটেড পরিবেশ নষ্ট করছে তাই কারখানাটির গ্যাস ও বিদ্যুত সংযোগ বন্ধ করার জন্য 


মার লিমিটেড ও সংশ্লিষ্ট দায়িত্বপ্রাপ্ত কর্মকর্তাদের কাছে  বেলার পক্ষ থেকে একটি আইনি নোটিশ দেয়া হয়েছে।

উল্লেখ্য যে ২০১৫ সালে পরিবেশ রক্ষার স্বার্থে  হবিগঞ্জ জেলার শিল্প কারথানার মালিকদের সাথে তৎকালীন জেলা প্রশাসকের আহবানে এক সভা অনুষ্টিত হয়। সভায় পরিবেশ বিভাগের উর্ধতন কর্তৃপক্ষ ছাড়াও বাপার নেতৃবৃন্দ উপস্থিত ছিলেন একাধিকবার তাগিদ দেওয়া।


সত্বেও ইটিপি চালু না করাায় মার লিমিটেডের কারখানা বন্ধের নির্দেশ দেন জেলা প্রশাসক। কিছুদিন বন্ধ রাখার পর মার লিমিটেড গোপনে তা চালু রেখে কারখানার বর্জ্য একটি খালের মাধ্যমে নদী ও হাওড়ে ছড়াচ্ছে  বলে এলাকাবাসীদের অভিযোগ।

মাধবপুরে সজিব ওয়াজেদ জয় পরিষদর বুল্লা ইউনিয়ন শাখার অনুমোদন

 মাধবপুরে সজিব ওয়াজেদ জয় পরিষদর বুল্লা ইউনিয়ন শাখার অনুমোদন


লিটন পাঠান, হবিগঞ্জ জেলা প্রতিনিধিঃহবিগঞ্জের মাধবপুরে সামাজিক সংগঠন সজিব ওয়াজেদ জয় পরিষদর বুল্লা ইউনিয়ন শাখার কমিটির অনুমোদন দেয়া হয়েছে। এ উপলক্ষে শনিবার বার্ষিক সম্মেলন অনুষ্ঠিত হয়েছে। সম্মেলনে প্রধান অতিথি উপস্থিত ছিলেন-উপজেলা আওয়ামী লীগের যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক মো.তাজুল ইসলাম

সজিবওয়াজেদ জয় পরিষদের মাধবপুর উপজেলা শাখার ভারপ্রাপ্ত সভাপতি মো. আলাল হোসাইনের সভাপতিত্বে ও ভারপ্রাপ্ত সাধারণ সম্পাদক মো. হাসান কবির।


ও সাংগঠনিক সম্পাদক মো. কাদির হোসেন জুয়েলের যৌথ পরিচালনায় এতে বিশেষ অতিথি ছিলেন-মাধবপুর উপজেলা আওয়ামী লীগের প্রচার ও প্রকাশনা সম্পাদক মো. এরশাদ আলী, মাধবপুর পৌর আওয়ামী লীগের সাবেক সভাপতি বেনু রঞ্জন রায় মাধবপুর উপজেলা যুবলীগের ভারপ্রাপ্ত সাধারণ সম্পাদক আবুল কাসেম, মাধবপুর পৌর যুবলীগের আহবায়ক একরামুল আলম লেবু মাধবপুর পৌর আওয়ামী লীগের।


সাবেক সাধারণ সম্পাদক আশরাফুল আলম টিটু ও উপজেলা যুবলীগের সহ সভাপতি মো. হেলাল মিয়া প্রমূখ।

সম্মেলন শেষে সর্বসম্মতিক্রমে মো. এরশাদ মিয়াকে ভারপ্রাপ্ত সভাপতি ও মো. সালাহউদ্দিন শিবলুকে ভারপ্রাপ্ত সাধারণ সম্পাদক করে ৩১ সদস্যবিশিষ্ট বুল্লা ইউনিয়ন ‘সজীব ওয়াজেদ জয় পরিষদে’র কমিটি অনুমোদন দেয়া হয়

কমিটির অন্যান্য সমস্যরা হলেন।


সিনিয়র সহ সভাপতি মো. দলাল মিয়া, সহ সভাপতি মো. ইনহানুল হক, মো. নাহিদুল ইসলাম শিবলু যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক মো. শুকুর আলী, মো. মাহবুবুল ইসলাম পাপ্পু শেখ বকুল মিয়া সুমন পাল, সহ সাংগঠনিক সম্পাদক মো. মিনার আলী মো. বশির মিয়া, মো. শাহ্ আলম প্রচার সম্পাদক মো. জয়নাল মিয়া, সহ প্রচার সম্পাদক অমৃত সূত্রধর, দপ্তর সম্পাদক মো. মামুন মিয়া উপ দপ্তর সম্পাদক মো. জাকিরুল মিয়া।


ধর্ম বিষয়ক সম্পাদক মো. মুজাম্মেল হক, তথ্য প্রযুক্তি সম্পাদক রাখেশ পাল সম্মানীত সদস্য মো. কাজল মিয়া, মো. মোতাব্বির মিয়া মো. নজরুল ইসলাম মো. পাবেল মিয়া মো. রজিম মিয়া, মো. জাহাঙ্গীর মিয়া মো. সফল উদ্দিন মো. ফজলুর রহমান, মো. নুরুল হক শেখ মোবারক মো. আলমগীর মিয়া মো. সুমন মিয়া ও মো. সোহাগ খান।