নওগাঁর আত্রাইয়ে করোনা মোকাবেলায় ইউএনও'র মাস্ক বিতরণ

নওগাঁর আত্রাইয়ে করোনা মোকাবেলায় ইউএনও'র মাস্ক বিতরণ
নওগাঁর আত্রাইয়ে করোনা মোকাবেলায় ইউএনও'র মাস্ক বিতরণ

মোঃ ফিরোজ হোসাইন রাজশাহী ব্যুরোঃ নওগাঁর আত্রাইয়ে করোনাভাইরাসের দ্বিতীয় ঢেউ মোকাবেলায় জনসচেতনতা সৃষ্টি সহ মাস্ক বিতরণ করেছে উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা মো.ইকতেখারুল ইসলাম।

মঙ্গলবার (৩০ শে মার্চ )সন্ধ্যায় উপজেলার নওদুলী বাজার এলাকায় এসব মাস্ক বিতরণ ও মসজিদে স্বাস্থ্য বিধি নিয়ে আলোচনা করা হয়।উপজেলা কর্মকর্তা জানান, সারা বিশ্ব কোভিড-১৯ এর বিরদ্ধে যুদ্ধ করছে। বাংলাদেশও এর ব্যতিক্রম নয়, সরকারের সময়োপযোগী পদক্ষেপের কারণে দৃঢ়তার সাথে তা মোকাবেলা করছে বাংলাদেশ।

বৈশ্বিক এই দুর্বিপাকে সম্মুখ সারির যোদ্ধা হিসেবে শুর থেকেই নিরলসভাবে কাজ করছে উপজেলা প্রশাসন। সাম্প্রতিক সময়ে আবারও ছড়িয়ে পড়েছে বৈশ্বিক মহামারি করোনা।

করোনার দ্বিতীয় ঢেউ-এর প্রকোপ মোকাবেলায় উপজেলা প্রশাসন এর উদ্যোগে উপজেলার নওদুলী বাজার এলাকায় উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা মো.ইকতেখারুল ইসলামের নেতৃত্বে মাস্ক বিতরণ ও জনসচেতনতামূলক প্রচারনা করা হয়।

এসময় যাদের মুখে মাস্ক ছিল না তাদেরকে মাস্ক পরিয়ে দেয়াসহ সচেতনতামূলক পরামর্শ দেওয়া হয়। করোনার দ্বিতীয় ঢেউ রোধে নিজ ও পরিবারকে সুরক্ষিত রাখতে জনসাধারণকে সরকারি নির্দেশনা ও স্বাস্থ্যবিধি মেনে চলার আহ্বান জানান কর্মকর্তা৷ 

নওগাঁয় বিএনপির বিক্ষোভে পুলিশ বিএনপির সংঘর্ষে রণক্ষেত্র, আহত অর্ধশতাধিক

নওগাঁয় বিএনপির বিক্ষোভে পুলিশ বিএনপির সংঘর্ষে  রণক্ষেত্র, আহত অর্ধশতাধিক
নওগাঁয় বিএনপির বিক্ষোভে পুলিশ বিএনপির সংঘর্ষে  রণক্ষেত্র, আহত অর্ধশতাধিক
রাজশাহী ব্যুরোঃ নওগাঁয় বিএনপির বিক্ষোভ মিছিলে লাঠিচার্জ, রাবার বুলেট ও টিয়ারশেল নিক্ষেপ করেছে পুলিশ।এতে বিএনপির অর্ধশতাধিক নেতাকর্মীসহ কয়েকজন পুলিশ সদস্য আহত হয়েছেন।৩০ মার্চ,মঙ্গলবার,দুপুর সাড়ে ১২টার দিকে বিএনপির দলীয় কার্যালয় শহরের কেডির মোড়ে এ ঘটনা ঘটে। পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে নিতে ঘটনাস্থলে অতিরিক্ত পুলিশ মোতায়েন করা হয়েছে।

ঘটনা সূত্রে জানা গেছে, পুলিশের গুলিতে হেফাজত কর্মীদের নিহতের ঘটনার প্রতিবাদে বিএনপির কার্যালয়ে বিভিন্ন এলাকা থেকে ছোট ছোট মিছিল এসে একত্রিত হয়। পরে সেখান থেকে বিএনপির নেতাকর্মীরা বিক্ষোভ মিছিল বের করার চেষ্টা করলে পুলিশ তাতে বাধা দেয়। এ সময় পুলিশের সঙ্গে ধস্তাধস্তির এক পর্যায়ে উভয়পক্ষের মধ্যে সংঘর্ষ শুরু হয়।

বিক্ষোভকারীদের ছত্রভঙ্গ করতে পুলিশ টিয়ারশেল ও রাবার বুলেট ছোড়ে। বিক্ষোভকারীরাও পুলিশ সদস্যদের লক্ষ্য করে ইটপাটকেল ছোড়ে। এ ঘটনায় পুলিশসহ অর্ধশতাধিক বিএনপি নেতাকর্মী আহত হয়েছেন।আহতদের মধ্যে কয়েকজনকে রাজশাহী মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে প্রেরণ করা হয়েছে।

জেলা বিএনপির সাবেক সাধারণ সম্পাদক জাহিদুল ইসলাম ধলু বলেন, বিভিন্ন এলাকা থেকে ছোট ছোট মিছিল বিএনপির পার্টি অফিসে এসে একত্রিত হয়। পরে পার্টি অফিস থেকে বিক্ষোভ মিছিল বের করতে চাইলে পুলিশ লাঠিচার্জ করে ছত্রভঙ্গ করে দেয়।এ সময় রাবার বুলেট ও টিয়ারশেল নিক্ষেপের ঘটনা ঘটে। আমাদের অর্ধশত নেতাকর্মী আহত হয়েছেন। বেশ কয়েকজনকে আটক করা হয়েছে বলেও জানান তিনি।
নওগাঁ সদর থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) নজরুল ইসলাম জুয়েল বলেন, মিছিল বের করতে নিষেধ করা হয়েছিল। অপ্রীতিকর ঘটনা এড়াতেই এমনটা করা হয়। কয়েকজন পুলিশ সদস্য আহতের ঘটনা ঘটেছে।

পটিয়ার সুচক্রদন্ডীতে প্রতিপক্ষের হামলায় মহিলাসহ আহত-৫

পটিয়ার   সুচক্রদন্ডীতে প্রতিপক্ষের  হামলায় মহিলাসহ আহত-৫

পটিয়া (চট্টগ্রাম) প্রতিনিধিঃ- চট্টগ্রামের পটিয়া পৌরসভার ২ নম্বর ওয়ার্ড সুচক্রদন্ডী এলাকায় মাদক ব্যাবসায়ির হামলায় মহিলাসহ ৫জন গুরুত্বর আহত হয়েছে মর্মে অভিযোগ পাওয়া গেছে। ঘটনাটি ঘটেছে  ৩০ মার্চ মঙ্গলবার  বিকাল ৩টায়। আহতরা হলেন, রেখা সেন, বাবলা সেন,দীপ্তি সেন,আনন্দ সেন,নন্দন সেন।আহতদের স্থানীয়রা উদ্ধার করে পটিয়া স্বাস্থ্য কমপ্লেক্স চিকিৎসা জন্য প্রেরণ করে। এঘটনায় রেখা সেন বাদী হয়ে একই এলাকার  কানু সেন, বিক্রম  সেন,  চুমকি সেন, তাপসী সেন এর বিরুদ্ধে পটিয়া থানায় একটি  অভিযোগ  দায়ের করেছে। অভিযোগ সুএে ও বাদী রেখা সেন জানান, দীর্ঘদিন ধরে এলাকায় কানু সেন ও  বিক্রম সেন যৌথভাবে মাদক সেবন ও ইয়াবা বিক্রি করে আসছিল। মাদক সেবন করে কানু সেন ও বিক্রম সেন রেখা সেন'কে প্রায় সময় গালিগালাজ করে। এর ধারাবাহিকতা ৩০ মার্চ রেখা সেন'কে গালিগালাজ করলে সে এর প্রতিবাদ করলে প্রতিপক্ষরা দেশীয় অস্ত্র-শস্র দিয়ে এলোপাতাড়ি পিটিয়ে শরীরের বিভিন্ন অঙ্গে  রক্তাক্ত জখম করে বলে থানার দায়েরকৃত অভিযোগ সুএে প্রকাশ। বিষয়টি  পটিয়া থানার এস আই মুক্তার হোসেন তদন্ত করছেন তিনি স্বীকার  করেন। রেখা সেন অভিয়োগ করে বলেন,  বিক্রম সেন কিশোর গ্যাংয়ের সক্রিয় সদস্য এবং বিভিন্ন অপকর্মের সাথে জড়িত তার এসমস্ত কিছুর প্রতিবাদ করলে তাকে নানান ধরনের ভয়ভীতি প্রদর্শন হত্যার হুমকি ধামকি দেয়। বিষয়টি পুলিশ প্রশাসন  তদন্ত সাপেক্ষ আইনগত ব্যবস্থা নেওয়া দাবি জানান। 

পটিয়ার পাইকপাড়ায় মাতৃসদন সার্জিক্যাল হাসপাতালের যাত্রা শুরু

পটিয়ার পাইকপাড়ায় মাতৃসদন সার্জিক্যাল হাসপাতালের যাত্রা শুরু

সেলিম চৌধুরী স্টাফ রিপোর্টারঃ স্বাস্থ্য সেবা বঞ্চিত মা-শিশুদের জন্য চট্টগ্রামের পটিয়া পৌর সদরে বেসরকারি সেবা প্রতিষ্ঠান মুছা-নুর ছেমন স্বাস্থ্য সেবা কমপ্লেক্স মাতৃসদন হাসপাতালের উদ্বোধন করা হয়েছে। ২০ শয্যার এই ক্লিনিকের উদ্যোক্তা ও ব্যবস্থাপনা পরিচালক ডা. তাসলিম চৌধুরী। শনিবার দুপুরে পটিয়া সদরের পাইকপাড়া এলাকায় হাসপাতাল ভবনে ৩য় তলায় এ উপলক্ষে অনুষ্ঠানের আায়োজন করা হয়। এতে সভাপতিত্ব করেন হাসপাতালের হাসপাতালটির প্রতিষ্ঠাতা ডা: তাসলিম চৌধুরী বাবা ও সাবেক ১৪ নং পটিয়া ইউনিয়ন পরিষদের (বর্তমানে পটিয়া পৌরসভা) চেয়ারম্যান আবু মুছা চৌধুরী।

অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথির ছিলেন পটিয়া পৌরসভার মেয়র আইয়ুব বাবুল, বিশেষ অতিথির ছিলেন চট্টগ্রাম চারুকলা কলেজের সাবেক অধ্যক্ষ আবদুল আলীম, হৃদরোগ চিকিৎসক এ কে এম নাছির উদ্দিন, সার্জন ডা: জাহাঙ্গীর উদ্দিন চৌধুরী, চট্টগ্রাম মেডিকেল কলেজ হাসপাতালের গাইনী বিভাগের প্রধান প্রফেসর ডা: রোকেয়া চৌধুরী, চমেক হাসপাতালের ইউরোলজিষ্ট বিভাগের সহযোগী অধ্যাপক ডা: কাজী মোহাম্মদ মনোয়ারুল করিম বাবর, আবৃত্তিকার গৌতম চৌধুরীর পরিচালনায় অনুষ্ঠানে বিশিষ্ট ব্যক্তিদের মধ্যে উপস্থিত ছিলেন, উপজেলা আওয়ামীলীগের সভাপতি আ ক ম সামশুজ্জামান, উপজেলা পরিষদের ভাইস চেয়ারম্যান ডা: তিমির বরণ চৌধুরী, কাউন্সিলর শফিউল আলম, নারী কাউন্সিলর ইয়াছমিন আকতার চৌধুরী, ৬ নং ওয়ার্ড আওয়ামীলীগের সভাপতি প্রনব দাশ, ডা: আইয়ুব নবী, ডা: জয় দত্ত বড়–য়া সুমন, ডা: সাইফুদ্দিন সুজা, ডা: এ কে এম মাইন উদ্দিন রনি, ডা: সাকিব, ডা: সানাম, সাবেক ইউপি সদস্য পুলক দেব প্রমুখ।

পটিয়া পৌরসভার মেয়র আইয়ুব বাবুল বলেন, 'পাইকপাড়া, দক্ষিনঘাটা, মাঝেরঘাটা, ভাটিখাইন, ছনহরা, শোভনদন্ডীসহ দক্ষিন চট্টগ্রামের মা এবং শিশুস্বাস্থ্যের চিকিৎসায় কষ্ট এবং ভোগান্তির শেষ ছিল না। আমার মনে হয় সেবাকেন্দ্রটি চালু হওয়ায় মানুষের ভোগান্তি কমবে। দোরগোড়ায় বসে মানুষ বিশেষজ্ঞ চিকিৎসকের ভালো চিকিৎসা পাবে।'

অধ্যাপক আবদুল আলীম বলেন, 'তৃণমূল পর্যায়ে গরিব-দুস্থ মানুষের সেবা করার লোক পাওয়া যায় না। সেদিক থেকে চিন্তা করলে ডা: তাসলিম চৌধুরী অনন্য দৃষ্টান্ত স্থাপন করেছেন। এ সেবাকেন্দ্র সাধারণ মানুষের সেবায় গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা রাখবে বলে আমি বিশ্বাস করি।'

ডা: তাসলিম চৌধুরী বলেন, 'এই অঞ্চলের নারীরা অনেক বেশি রক্ষণশীল, তাই আমরা সম্পূর্ণ নারী বিশেষজ্ঞ চিকিৎসক ও সেবিকাদের দ্বারা অস্ত্রোপচার, পরীক্ষা-নিরীক্ষাসহ মানসম্পন্ন চিকিৎসা প্রদান, গর্ভকালীন জরুরি, সময়োপযোগী চিকিৎসার প্রয়োজনে গর্ভবতী মায়েদের তালিকা তৈরি করে সেবাকেন্দ্রের মাধ্যমে অগ্রসর ভূমিকা রাখতে চাই। এমনকি গর্ভবতী মায়েদের সন্তান প্রসবের সময় প্রয়োজনে আমরা তাৎক্ষণিক নিরাপদ রক্তদানের ব্যবস্থাও নিশ্চিত করব।' তিনি আরও বলেন, জরায়ুতে বাচ্চার আড়াআড়ি অবস্থান, গর্ভকালীন খিঁচুনি, উচ্চ রক্তচাপ, বাচ্চার গর্ভকালীন সঠিক অবস্থান নির্ণয়, গর্ভকালীন বাচ্চার অপুষ্টি ইত্যাদি চিহ্নিত করে, মাতৃমৃত্যুর হার কমিয়ে আনার লক্ষ্যে এ সেবাকেন্দ্র ভূমিকা রাখবে।

গত ৪ বছর আগে তিনি নিজের গ্রামের বাড়িতে বাবা মায়ের নামে প্রতিষ্ঠা করেন মুছা-নুর ছেমন স্বাস্থ্য সেবা কমপ্লেক্স।তারপর থেকেই এখানে নিয়মিত চিকিৎসা সেবা দিয়ে যাচ্ছেন তিনি। করোনাকালেও বন্ধ করেননি চিকিৎসাসেবা কার্যক্রম। রোগীদের জন্য সব সময় খোলা রেখেছেন তার প্রতিষ্ঠানের আউটডোর ও ইনডোর সেবা। স্বাস্থ্যবিধি মেনে রোগী দেখে চলেছেন নিয়মিত। সেই সঙ্গে নরমাল ডেলিভারি করিয়েছেন। অপারেশনও করছেন নিয়মিত। করোনাকালীন সময়ে তিনি গর্ভবতী নারী, প্রসূতি মা ও শিশুসহ সব ধরনের রোগীদের সেবা দিয়েছেন। পরিবার পরিকল্পনা পদ্ধতির পরামর্শও দিয়ে যাচ্ছেন। ১৯৯৭ সালে চট্টগ্রাম মেডিক্যাল কলেজ থেকে এমবিবিএস পাশ করে প্রসূতি ও ধাত্রীবিদ্যায় তিনি নিয়েছেন উচ্চতর ডিগ্রি। চিকিৎসা সেবার পাশাপাশি ডা. তাসলিম চৌধুরী নিজেকে সম্পৃক্ত করেছেন বিভিন্ন সামাজিক ও সাংস্কৃতিক কর্মকান্ডে।

৬১ ভারতীয় জেলে কারাগার থেকে মুক্ত, মোংলা থেকে ফিরছেন নিজ দেশে

৬১ ভারতীয় জেলে কারাগার থেকে মুক্ত, মোংলা থেকে ফিরছেন নিজ দেশে

মোঃএরশাদ হোসেন রনি , মোংলাঃ       বঙ্গোপসাগরে বাংলাদেশের জলসীমায় অনুপ্রবেশ করে মাছ শিকারের দায়ে তিন দফায় আটক ৬১ ভারতীয় জেলেকে মঙ্গলবার দুপুরে বাগেরহাট কারাগার থেকে মুক্তি দেয়া হয়েছে। আদালতের নির্দেশে মুক্ত এসব জেলেকে ভারতীয় দূতাবাস কর্মকর্তাদের কাছে তুলে দেন বাগেরহাট কারা কর্তৃপক্ষ। 
বাগেরহাট কারাগারের জেলার একে এ এম মাসুম জানান, বঙ্গোপসাগরে বাংলাদেশের জলসীমায় অনুপ্রবেশ করে মাছ শিকারের দায়ে প্রথম দফায় গত বছরের ৩ ডিসেম্বর কোষ্টগার্ড সদস্যরা 'এফ,বি মা শিবানী' নামের একটি ফিশিং ট্রলারসহ ১৭ ভারতীয় জেলেকে আটক করে আদালতে পাঠালে বিচারক তাদের কারাগারে পাঠাবার নির্দেশ দেন। এরপর কোষ্টগার্ড সদস্যরা ওই বছরের ২৪ ডিসেম্বর দ্বিতীয় দফায় 'এফ,বি মঙ্গল চন্ডি - ৭' নামের একটি ফিশিং ট্রলারসহ ১৬ ভারতীয় জেলেকে আটক করে আদালতে পাঠালে বিচারক তাদের কারাগারে পাঠাবার নির্দেশ দেন। সর্বশেষ চলতি বছরের ৩১ জানুয়ারী কোষ্টগার্ড সদস্যরা 'এফ,বি সঙ্খ দ্বীপ' ও 'এফ,বি স্বর্ণলতা' নামের দুটি ফিশিং ট্রলারসহ আরো ২৮জন ভারতীয় জেলেকে আটক করে আদালতে পাঠালে বিচারক তাদের কারাগারে পাঠাবার নির্দেশ দেন। তিন দফায় আটক ৬১ ভারতীয় জেলে এতোদিন বাগেরহাট কারাগারে আটক ছিলেন।

নওগাঁয় বিএনপির অর্ধশত নেতাকর্মী আহত ও গুলিবিদ্ধ - ১

নওগাঁয় বিএনপির  অর্ধশত নেতাকর্মী আহত ও গুলিবিদ্ধ - ১

রহমতউল্লাহ নওগাঁ' নওগাঁয় পুলিশের সঙ্গে বিএনপির নেতা-কর্মীদের সংঘর্ষ ধাওয়া পাল্টা ধাওয়া হয়।বিএনপির বিক্ষোভ মিছিলে পুলিশ বাধা  দেওয়ায় বিএনপি নেতাকর্মীরা ক্ষিপ্ত হয়ে  এক পর্যায়ে পুলিশের উপর চড়াও হয়ে  ওঠেন ইটপাটকেল নিক্ষেপ, গাড়ী ও দোকানপাট ভাংচুর শুরু করে। পুলিশ পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে লাঠিচার্জ, রাবার বুলেট ও টিয়ারশেল নিক্ষেপ করে। এতে বিএনপির একজন গুলিবিদ্ধসহ অন্তত ৪০-৫০ জন নেতাকর্মী আহত হয়েছেন। এ ঘটনায় ৭ পুলিশ সদস্য আহত হয়েছেন।

আহ-তরা বর্তমানে বিভিন্ন হাসপাতালে চিকিৎসাধীর রয়েছেন। বিক্ষোভ মিছিল ঘটনায় জড়িত থাকার অভিযোগে ঘটনারপর বিএনপির তিনজন নেতাকর্মীকে আটক করছে পুলিশ।মঙ্গলবার দুপুর সাড়ে ১২টার দিকে শহরের কেডির মোড়ে বিএনপির দলীয় কার্যালয়ের সামনে এই ঘটনা ঘটে।


জানাগেছে, সারাদেশে মানুষ হত্যা, খুন-গুমের প্রতিবাদে বিএনপির কেন্দ্রীয় কর্মসূচির অংশ হিসেবে নওগাঁ জেলা বিএনপির আয়োজনে দলীয় কর্যালয়ের সামনে একটি বিক্ষোভ মিছিল বের করে। এসময় উপস্থিত পুলিশ সদস্য তাদের মিছিলে বাঁধা প্রদান করে এবং দলীয় কার্যালয় থেকে চলে যেতে বলেন।

পুলিশ বিক্ষোভ সমাবেশে বাধা প্রদান করায় বিএনপির নেতা-কর্মীরা ক্ষিপ্ত হয়ে পুলিশ সদস্যদের লক্ষ্য করে ইট পাটকেল ছুড়তে থাকে। পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে পুলিশও ফাঁকা গুলি, রাবার বুলেট ও টিয়ারশেল নিক্ষেপ করে।এসময় দফায় দফায় পুলিশ ও বিএনপি নেতাকর্মীদেও মাঝে ধাওয়া পাল্টা ধাওয়া সংঘটিত হয়। পরে অতিরিক্ত পুলিশ মোতায়ন করে পরিস্থিততি নিয়ন্ত্রন করাহয়।

জেলা যুবদলের সভাপতি বায়োজিদ হোসেন পলাশ বলেন, সারাদেশে মানুষ হত্যা, খুন-গুমের প্রতিবাদে কেন্দ্রীয় কর্মসূচির অংশ হিসেবে নওগাঁয় দলীয় কর্যালয়ের সামনে শান্তিপূর্ন বিক্ষোভ মিছিলে পুলিশ বাঁধা প্রদান করে ও নেতাকর্মীদের উপর হামলা চালায়, এতে আমাদে একজন কর্মী গুলিবিদ্ধ হয়েছেন এবং অন্তত ৪০-৫০ জন নেতাকর্মী আহত হয়ে হাসপাতাল ও বিভিন্ন ক্লিনিকে চিকিৎসাধীন রয়েছেন।

নওগাঁ সদর মডেল থানার অফিসার ইনচার্জ (ওসি) নজরুল ইসলাম জুয়েল জানান, এ ঘটনায় সদর থানায় মামলা দায়েরের প্রক্রিয়া চলছে। ঘটনায় জড়িত থাকায় ঘটনারপর তিনজনকে আটক করা হয়েছে। অভিযান অব্যাহত রয়েছে।

অতিরিক্ত পুলিশ সুপার (প্রশাসন) রকিবুল আক্তার বলেন, বিএনপির সমাবেশ চলাকালে নেতাকর্মীরা কোন রকম উষ্কানি ছাড়াই অতর্কিত ভাবে পুলিশের উপর হামলা চালায় এঘটনায় অন্তত ৫-৭ জন পুলিশ সদস্য আহত হন। পরে ঘটনাস্থলে অতিরিক্ত পুলিশ মোতায়েন করে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রন করা হয়েছে। এই নাশকতার সাথে জড়িতদের কাউকে ছাড় দেওয়া হবে না।

পবিত্র ধর্মকে নিয়ে রাজনীতি করা নিষিদ্ধ ঘোষণা করতে হবে

পবিত্র ধর্মকে নিয়ে রাজনীতি করা নিষিদ্ধ ঘোষণা করতে হবে

মামুনুর রশিদ,দিনাজপুর প্রতিনিধি ॥- দিনাজপুর-১ আসনের সংসদ সদস্য মনোরঞ্জন শীল গোপাল বলেছেন, পবিত্র ধর্মকে নিয়ে রাজনীতি করা নিষিদ্ধ ঘোষণা করতে হবে। প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার নেতৃত্বে বাংলাদেশের উন্নয়ন অদম্য ও অপ্রতিরোধ্য গতিতে এগিয়ে যাচ্ছে। সেই সাথে প্রত্যেক গ্রামকে শহরে পরিণত করা হচ্ছে যাতে মানুষের জীবন যাত্রার মান বৃদ্ধি পায়। এই উন্নয়নে কেউ বাঁধা সৃষ্টি করলে পরিমাণ শুভ হবে না।
৩০ মার্চ মঙ্গলবার বিকেল ৫ টায় স্থানীয় সরকার প্রকৌশল অধিদপ্তরের বাস্তবায়নে ৮০ লাখ টাকা ব্যয়ে দিনাজপুরের কাহারোল উপজেলায় মুকুন্দপুর ইউনিয়ন পরিষদের নব-নির্মিত কমপ্লেক্স ভবনের আনুষ্ঠানিক উদ্বোধন ও আলোচনা সভায় প্রধান অতিথির বক্তব্যে তিনি উপরোক্ত কথাগুলো বলেন।
এমপি গোপাল আরও বলেন, শেখ মুজিবের সোনার বাংলাকে নিয়ে ফের ষড়যন্ত্র শুরু করেছে সেই পাকিস্তানের রয়ে যাওয়া কিছু প্রেতাত্মারা। যারা আজ হেফাজত, জামায়াত-শিবির নামে নিজেদের প্রতিষ্ঠিত করেছে। আজকে সেই অসাম্প্রদায়িক বাংলাদেশে সেই সাম্প্রদায়িক গোষ্ঠীরা আবারো ফণা তুলছে। কিন্তু তারা বাঙালির আসল চেহারা এখনো দেখেনি। বাঙালি যদি ফণা তুলে দাঁড়ায় তাহলে তারা এবার আর রক্ষা পাবে না।
উপজেলা নির্বাহী অফিসার মনিরুল হাসান এর সভাপতিত্বে অনুষ্ঠানে বিশেষ অতিথির বক্তব্য রাখেন উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান বীরমুক্তিযোদ্ধা আব্দুল মালেক সরকার, উপজেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক হাফিজুল ইসলাম চৌধুরী। স্বাগত বক্তব্য রাখেন উপজেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি ও মুকুন্দপুর ইউনিয়নের চেয়ারম্যান এ কে এম ফারুক।
এসময় অন্যান্যদের মধ্যে বক্তব্য রাখেন জেলা পরিষদের সদস্য মীরা মাহবুব, উপজেলা পুজা উদযাপন পরিষদের সভাপতি রাজেন্দ্র দেব নাথ, উপজেলা আওয়ামী লীগের সাংগঠনিক সম্পাদক জাকির হোসেন, রসুলপুর ইউপি চেয়ারম্যান সঞ্জয় কুমার মিত্র, রামচন্দ্রপুর ইউপি চেয়ারম্যান আলহাজ্ব আতাউর রহমান বাবুল, মুকুন্দপুর ইউপি আওয়ামী লীগের সভাপতি পুরণ চন্দ্র রায়, উপজেলা মহিলা আওয়ামী লীগের সভাপতি নাসিমা আক্তার, বঙ্গবন্ধু সৈনিক লীগ জেলা শাখার সভাপতি মো. কামাল হোসেন প্রমুখ।





আশাশুনি সদরের দয়ার ঘাট রিং বাঁধ ভেঙে বিস্তীর্ণ এলাকা প্লাবিত

আশাশুনি সদরের দয়ার ঘাট রিং বাঁধ ভেঙে বিস্তীর্ণ এলাকা প্লাবিত

আহসান উল্লাহ বাবলু, আশাশুনি সাতক্ষীরা  প্রতিনিধি: আশাশুনি উপজেলার সদর ইউনিয়নের দয়ারঘাট রিং বাঁধ এর পাঁচটি পয়েন্ট ভেঙ্গে দয়ার ঘাট ও জেলে খালি গ্রাম প্লাবিত। মঙ্গলবার দুপুরে প্রবল জোয়ারের পানি বৃদ্ধি পাওয়ায় দয়ারঘাট রিং বাঁধ ভেঙে জেলেখালি দয়ার ঘাটের সমগ্র এলাকা প্লাবিত হয়। দুই গ্রামের ৩৫০ ঘর প্লাবিত ও প্রায় ১৫ শত মানুষ পানিবন্দী অবস্থায় রয়েছে। ভেসে গেছে অসংখ্য মৎস্য ঘের। পানিবন্দি অসহায় মানুষ এখন মানবেতর জীবনযাপন করছে।

 উল্লেখ্য বিগত আম্পানে আশাশুনি উপজেলার সদর ইউনিয়নের দয়ার ঘাট বাঁধ ভেঙে বিস্তীর্ণ এলাকা প্লাবিত হয়ে মানুষ পানিবন্দি অবস্থায় মানবেতর দিন কাটাতে থাকে। সেসময় আশাশুনি উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান ও উপজেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি এবিএম মোস্তাকিম এর নেতৃত্বে সদর ইউপি চেয়ারম্যান স,ম সেলিম রেজা মিলন সাবেক ইউপি চেয়ারম্যান বৃন্দসহ স্থানীয় সকল রাজনৈতিক, সামাজিক নেতৃবৃন্দ ও এলাকার গণ্যমান্য ব্যক্তিদের নিয়ে পানিবন্দি বিস্তীর্ণ এলাকার মানুষকে রক্ষার জন্য রিং বাঁধের ব্যবস্থা করা হয়। কিন্তু প্রবল জোয়ারের তোড়ে ঐ রিং বাঁধের পাঁচটি পয়েন্টে ভেঙে দুইটি গ্রাম প্লাবিত হয়ে সহস্রাধিক মানুষ পানিবন্দি হয়ে পড়েছে এবং অসংখ্য মৎস্য ঘের প্লাবিত হয়েছে।

ভাঙ্গন কবলিত এলাকা পরিদর্শনে এসে আশাশুনি উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান ও উপজেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি এবিএম মোস্তাকিম বলেন আমি প্রতিটি দুর্যোগকালীন সময়ে আপনাদের পাশে ছিলাম আছি এবং থাকব। তিনি বানভাসি মানুষের পাশে থেকে প্রয়োজনীয় খাবার ও সার্বিক সহযোগিতার আশ্বাস দেন। আশাশুনি উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা নাজমুল হুসেইন খাঁন বলেন, জেলা প্রশাসক মহোদয় কে অবহিত করেছি তিনি পানিবন্দি ক্ষতিগ্রস্ত অসহায় মানুষের জন্য প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা গ্রহণের নির্দেশ দিয়েছেন। তিনি আরও বলেন আমি ওয়াপদা কর্তৃপক্ষের সাথে কথা বলেছি মূল বাঁধের কাজ দ্রুত শুরু হবে। মানুষ যাতে খাদ্যাভাবে না ভোগে তার জন্য প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে। এসময় উপস্থিত ছিলেন সহকারী কমিশনার (ভূমি) শাহিন সুলতানা,থানা অফিসার ইনচার্জ মোহাম্মদ গোলাম কবির। সদর ইউপি চেয়ারম্যান স,ম সেলিম রেজা মিলনের নেতৃত্বে ভেঙে যাওয়া পাঁচটি পয়েন্টে রিং বাঁধের সংস্কার কাজ চলমান রয়েছে। এসময় ইউপি চেয়ারম্যান মিলন বলেন এলাকায় মাইকিং করে পর্যাপ্ত লোক নিয়ে ভেঙে যাওয়া রিংবাঁধের পাঁচটি পয়েন্টের কাজ শুরু করেছি। আমরা আশাবাদী পরবর্তী জোয়ারের আগে ভেঙ্গে যাওয়া  রিং বাঁধ সংস্কার করা সম্ভব হবে।

অবাধে চলছে মধুপুরে ফসলি জমির মাটি কাটার মহোৎসব

অবাধে চলছে মধুপুরে ফসলি জমির মাটি কাটার মহোৎসব
অবাধে চলছে মধুপুরে ফসলি জমির মাটি কাটার মহোৎসব
আঃ হামিদ,মধুপুর( টাঙ্গাইল) প্রতিনিধিঃ টাঙ্গাইলের মধুপুরে অবাধে চলছে মাটি কাটার মহোৎসব। মাননীয় প্রধানমন্ত্রীর ঘোষণা অনুযায়ী কোন ফসলের জমি কেটে পুকুর খনন অথবা অন্য কোন কাজে ব্যবহার করা যাবেনা। অতীতের সকল রেকর্ড ভেঙে মধুপুর উপজেলার বিভিন্ন স্থানে ১১টি পয়েন্টে আবাদি জমি সহ নদী খনন ও পাহাড় কাটার মতো মহোৎসব চলছে। যা মধুপুর উপজেলায় অতীতে দেখা যায়নি। প্রভাবশালীদের ছত্রছায়ায় এবং প্রশাসনের চোখের সামনে দিয়েই দিনরাত মাটি ভর্তি ট্রাক ও হাইড্রোলিক  চলছে বিভিন্ন ইট ভাটায়। 

গ্রামের বিভিন্ন কাচাপাকা রাস্তাঘাট ভেঙে চলাচলের অযোগ্য হয়ে পড়েছে। মাটি ভর্তি অতিভারী লাইসেন্স বিহীন হাইড্রোলিক ও ট্রাক দিনরাত চলাচলের ফলে নতুন ও সংস্কার করা পাঁকা রাস্তা গুলো ভেঙে চৌচির হয়ে গেছে। রাস্তার ধুলোমাটিতে আশপাশের বাসাবাড়ি, দোকানপাট ক্ষতিগ্রস্ত হচ্ছে। মাঝে মধ্যে স্থানীয় প্রশাসন অভিযান পরিচালনা করলেও তা ঘন্টা খানেকের মধ্যে আবারও বীরদর্পে শুরু করে মাটি কাটা। এই সকল ভূমি দস্যুদের দৃষ্টান্ত মূলক শাস্তি না হওয়ার কারণেই মাটি কাটা বন্ধ হচ্ছে না বলে জানিয়েছেন স্থানীয় এলাকাবাসী। 

মধুপুর উপজেলার বিভিন্ন এলাকা ঘুরে দেখা যায় প্রায় ১১টি পয়েন্টে এক্সক্যাভেটর (ভ্যেকু)দিয়ে ফসলি জমির টপ সয়েল কেটে জমির উর্বরতা নষ্ট করা হচ্ছে যা আইন বহির্ভূত।এই মাটি বেশির ভাগই চলে যাচ্ছে বিভিন্ন ইটভাটায়। মাটি ব্যবসায়ীগন এক শ্রেণীর দালালের মাধ্যমে জমির মালিককে লোভ দেখিয়ে কখনও বা বেকায়দায় ফেলে ৬ থেকে ৮ ফুট গর্ত করে মাটি বিক্রি করতে বাধ্য করছে। যেখানে প্রধানমন্ত্রী ঘোষণা দিয়েছেন এক টুকরো জমিও ফাকা রাখা যাবেনা, সেখানে মাটি কাটার কারনে আবাদি জমি প্রতিনিয়ত কমে যাচ্ছে।  

এলাকাবাসীর অভিযোগ নতুন পাকা রাস্তা গুলো ভেঙে চৌচির হয়ে গেছে এবং দিনরাত মাটি ভর্তি হাইড্রোলিক গাড়ি চলাচলের কারনে ধুলোমাটিতে বাড়ি ঘর ভরে যাচ্ছে ও খাবার বিনষ্ট হচ্ছে। মধুপুরের প্রায় সবগুলো ইটের ভাটা অবৈধ পন্থা অবলম্বন করে চালিয়ে যাচ্ছে।  এলাকাবাসীর দাবি  খুব দ্রুত সময়ের মধ্যে  অবাদে মাটি কাটা  বন্ধ করা না হলে মানববন্ধনের কর্মসূচী দিবে এমনটাই জানিয়েছেন কয়েকজন ভোক্তভোগী।

ঝালকাঠিতে বিএনপির বিক্ষোভ কর্মসূচী পালনে নেতাকর্মীদের রাস্তায়ই নামতে দেয়নি পুলিশ

ঝালকাঠিতে বিএনপির বিক্ষোভ কর্মসূচী পালনে নেতাকর্মীদের রাস্তায়ই নামতে দেয়নি পুলিশ

মো. নাঈম হাসান ঈমন ঝালকাঠি জেলা প্রতিনিধি: বিএনপির কেন্দ্রঘোষিত কর্মসূচীর অংশ হিসেবে ঝালকাঠিতে বিক্ষোভ কর্মসূচী পালনের আয়োজন জেলা বিএনপি। মঙ্গলবার সকাল ১১টায় পুরাতন কলেজ রোডস্থ জেলা বিএনপির সদস্য সচিব অ্যাডভোকেট শাহাদাত হোসেন'র চেম্বারে নেতাকর্মীরা জড়ো হয়। পুলিশের একাধিক টিম চেম্বারের সামনের রাস্তায় অবস্থান নেয়। এতে নেতাকর্মীরা চেম্বারের মধ্যেই অবরুদ্ধ হয়ে পড়েন। একপর্যায়ে নেতৃবৃন্দ প্রতিবাদ সমাবেশ করেন। এতে বক্তৃতা করেন বিএনপির কেন্দ্রীয় কমিটির সহসাংগঠনিক সম্পাদক ও বরিশাল বিএম কলেজের সাবেক ভিপি মাহবুবুল হক নান্নু, জেলা বিএনপির আহব্বায়ক অ্যাডভোকেট সৈয়দ হোসেন, সদস্য ও ২০০৮ সালের জাতীয় সংসদ নির্বাচনে ঝালকাঠি-০১ (রাজাপুর-কাঠালিয়া) আসনে বিএনপি মনোনীত প্রার্থী রফিকুল ইসলাম জামাল, সদস্য সচিব অ্যাডভোকেট শাহাদাত হোসেন, সদস্য ও জেলা যুবদলের সাবেক সাধারন সম্পাদক শামীম তালুকদার, জেলা যুবদলের সাংগঠনিক সম্পাদক অ্যাডভোকেট আনিচুর রহমান খান, জেলা ছাত্রদলের যুগ্ম সম্পাদক গোলাম আজম সোহানসহ বিএনপি সহযোগী সংগঠনের নেতৃবৃন্দ। সদস্য সচিব অ্যাডভোকেট শাহাদাত হোসেন জানান, বিএনপির কেন্দ্রঘোষিত কর্মসূচীর আয়োজন করলে সরকারের পেটোয়াবাহিনী পুলিশ নেতাকর্মীদের আসতে পথে পথে বাধা সৃষ্টি করে। কয়েকটি ট্রলারঘাট বন্ধ করে। সড়ক পথেও চেকপোস্ট বসিয়ে তল্লাশীর নামে হয়রানি করে। এজন্য অনেক নেতাকর্মী আসতে পারেনি। আহব্বায়ক অ্যাডভোকেট সৈয়দ হোসেন জানান, সারাদেশে আলেম ওলামাদের উপর সরকারের বর্বর আচরণের প্রতিবাদে বিএনপি সারাদেশে বিক্ষোভ কর্মসূচী ঘোষণা করে। কেন্দ্রীয় নির্দেশনা অনুযায়ী আমরাও বিক্ষোভের আয়োজন করলে পুলিশ আমাদের তা করতে দেয়নি। পথে পথে বাধা সৃষ্টি করেছে। হাজার হাজার নেতাকর্মী তাতে আসতে পারেনি। আমরা এধরনের আচরনের তীব্র নিন্দা জানাই। সহসাংগঠনিক সম্পাদক মাহবুবুল হক নান্নু জানান, ভারতের প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদির বাংলাদেশে আগমনকে কেন্দ্র করে উত্তপ্ত পরিস্থিতিতে ধর্মপ্রাণ মুসল্লিদের প্রাণহানিসহ অসংখ্য লোক আহত হয়েছেন। বিএনপি এর প্রতিবাদে দেশব্যাপী বিক্ষোভ কর্মসূচী ঘোষণা করেন। একর্মসূচী পালনের আয়োজন করলে পুলিশ বাধা দিয়ে তারা আমাদের গৃহবন্ধী করে রাখে। পথে পথে বাধা সৃষ্টি করে নেতাকর্মীদের হয়রাণি করে। বিদেহীদের আত্মার মাগফেরাত কামনা করে ফ্যাসীবাদী সরকারের প্রতি ধিক্কার ও প্রতিবাদ জানান তিনি। ঝালকাঠি সদর পুলিশ ফাড়ির ইনচার্জ আব্দুল হালিম তালুকদার বিএনপি নেতৃবৃন্দের এসব অভিযোগ অস্বীকার করে জানান, করোনা সংক্রমণ প্রতিরোধে নির্দেশনা অনুযায়ী আমরা রাস্তায় দায়িত্ব পালন করছি।

রাজাপুরে ইউপি মেম্বর প্রার্থীর প্রচার মাইক-অটো ভাঙচুর ও মারধরের অভিযোগ

রাজাপুরে ইউপি মেম্বর প্রার্থীর প্রচার মাইক-অটো ভাঙচুর ও মারধরের অভিযোগ

মো. নাঈম হাসান ঈমন ঝালকাঠি জেলা প্রতিনিধি: ঝালকাঠির রাজাপুরের শুক্তগড় ইউনিয়নের ৪ নং ওয়ার্ডের তালা প্রতীকে মেম্বর পদ প্রার্থী মোঃ তরিকুল ইসলাম রিয়াজ মৃধার প্রচার মাইক ও অটো ভাঙচুর ও অটোচালক মারধরের প্রতিবাদে সংবাদ সম্মেলন করেছেন। এ ঘটনায় রাজাপুর থানায় মামলা দায়ের করেছেন। মঙ্গলবার দুপুরে রাজাপুর সাংবাদিক ক্লাবে সংবাদ সম্মেলনে লিখিত বক্তব্যে মেম্বর পদ প্রার্থী মোঃ তরিকুল ইসলাম রিয়াজ মৃধা বলেন, আমি ও আমার পরিবারের লোকজন যুগ যুগ ধরে আওয়ামিলীগ দল করে আসছি। এলাকায় আমার প্রচুর জনপ্রিয়তা রয়েছে। তাতে আমার প্রতিপক্ষ নব্য আ'লীগ ও জামায়াত-বিএনপি'র নেতাকর্মী পিংড়ি গ্রামের আলমগীর খলিফার ছেলে কাওসার হোসেন ওরফে নয়ন খলিফা (৩৫), এস্কান্দারের ছেলে মুরাদ (৩০) ও জলিল হাওলাদারের ছেলে টুকু হাওলাদারসহ (৩২) অরো অজ্ঞাত ৩/৪ ক্ষিপ্ত হয়ে সোমবার বিকাল সাড়ে তিনটার দিকে পিংড়ি গ্রামের মাঝু হাওলাদারের বাড়ির সামনে প্রচারনায় মাইকসহ অটোগাড়িতে হামলা চালিয়ে ভাঙচুর করে এবং চালককে মারধর করে তার সাথে থাকা মোবাইল ফোন ছিনিয়ে নিয়ে যায়। প্রতিপক্ষের বিরুদ্ধে অগ্নিসংযোগ, হত্যাচেষ্টাসহ বিভিন্ন অপকর্মের একাধিক মামলা রয়েছে। এদের কাছে এলাকাবাসি ভয়ে জিম্মি হয়ে পড়েছে। এদের বিরুদ্ধে কেউ কোন সাক্ষি বা থানায় কোন মামলা করার সাহস পাচ্ছে না। এরা এমন কোন খারাপ কাজ নেই যাহা তারা করতে পারে না। প্রতিপক্ষের লোকজন বর্তমানে আমাকে হত্যাসহ আমার ব্যবসায়ীক প্রতিষ্ঠান ও বসতঘরে অগ্নি সংযোগ করার হুমকি দিচ্ছে। নির্বাচনী কার্যক্রম চালাতে আমাকে এলাকায় প্রবেশ করতে দিচ্ছে না। আমার জনপ্রিয়তা বেশী বলে গত নির্বাচনেও তারা আমার উপরে হামলা ও বিভিন্ন রকম হয়রানি করে আমাকে বিজয়ী হতে দেয়নি। মেম্বর প্রার্থী মোঃ তরিকুল ইসলাম রিয়াজ মৃধা লিখিত বক্তব্যে আরও বলেন, সোমবার গভীর রাতে এলাকার একটি নির্বাচনী ক্যাম্পে কে বা কাহারা অগ্নিসংযোগ করে পুড়িয়ে দেয়। সেই বিষয়ে আমার বিরুদ্ধে প্রতিপক্ষরা মিথ্যা মামলা দেয়ারও হুমকি দিচ্ছে। বর্তমানে প্রতিপক্ষের লোকজনের তান্ডবের ভয়ে আমি, আমার পরিবারের লোকজন ও আত্মীয় স্বজন আতংকিত হয়ে পড়েছি। আমরা নিরাপত্তাহীনতায় ভুগছি। তাই সংবাদ সম্মেলনের মাধ্যমে প্রশাসনের উর্ধ্বতন কর্তৃপক্ষের কাছে আইনি সহযোগীতা কামনা করেছেন তিনি। অভিযোগের বিষয়ে কাওসার হোসেন ওরফে নয়ন খলিফা সকল অভিযোগ অস্বীকার করে জানান, তাদের বিরুদ্ধে মিথ্যা অভিযোগ করা হচ্ছে, এসব ঘটনায় তারা জড়িত না। রাজাপুর থানার ওসি শহিদুল ইসলাম জানান, এ ঘটনায় মামলা হয়েছে। ঘটনাস্থলে পুলিশ তদন্ত করেছে। আসামী গ্রেফতারে পুলিশী অভিযান অব্যাহত আছে।

নোয়াখালী কোম্পানীগঞ্জে বসুরহাটে সাংবাদিক মুজাক্কির হত্যার ১২ আসামি রিমান্ডে

নোয়াখালী কোম্পানীগঞ্জে বসুরহাটে সাংবাদিক মুজাক্কির হত্যার ১২ আসামি রিমান্ডে
সাংবাদিক বুরহানুদ্দিন মুজাককির

আব্দুল জব্বার, স্টাফ রিপোর্টার।।নোয়াখালীর কোম্পানীগঞ্জের বসুরহাটে আওয়ামী লীগের দুই গ্রুপের পক্ষের সংঘর্ষে সাংবাদিক বুরহান উদ্দিন মুজাক্কির নিহতের ঘটনায় গ্রেপ্তার ১২ আসামির রিমান্ড মঞ্জুর করেছেন আদালত। 

সোমবার দুপুরে নোয়াখালী সিনিয়র জুডিসিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট আদালত-২-এর বিচারক এস এম মোসলে উদ্দিন মিজান আসামিদের রিমাণ্ড মঞ্জুর করেন।

আসামিরা হলেন, কোম্পানীগঞ্জের চরফকিরা ইউনিয়নের ইউসুফ নবী বাহাদুর, একই এলাকার আলমগীর হোসেন, রাহাত, আজিজুল হক মানিক, আবদুল আমীন, মোশারফ হোসেন, সুজায়েত উল্যাহ সবুজ, বিক্রম চন্দ্র ভৌমিক, চরকালী গ্রামের ফয়সাল আলম টিটু, মাসুদুর রহমান,  সেলিম ও চরকাঁকড়ার দেলোয়ার হোসেন।

পিবিআই'র পরিদর্শক ও মামলার তদন্তকারী কর্মকর্তা মোস্তাফিজুর রহমান বিষয়টি নিশ্চিত করে জানান, মুজাক্কির হত্যা মামলায় গ্রেপ্তার ১২ আসামির তিন দিন করে রিমান্ডের আবেদন করে সিনিয়র জুডিসিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট আদালতে হাজির করা হয়। 

শুনানি শেষে আদালতের বিচারক এস এম মোসলে উদ্দিন মিজান আসামিদের দুই দিন করে রিমান্ড মঞ্জুর করেন।

প্রসঙ্গত, গত ১৯ ফেব্রুয়ারি বিকেলে উপজেলার চাপরাশিরহাট পূর্ব বাজারে মেয়র আবদুল কাদের মির্জা ও সাবেক উপজেলা চেয়ারম্যান মিজানুর রহমান বাদলের সমর্থকদের মধ্যে সংঘর্ষ ও গোলাগুলির ঘটনা ঘটে। এতে সাংবাদিক বুরহান উদ্দিন মুজাক্কিরসহ বেশ কয়েকজন গুলিবিদ্ধসহ অর্ধশতাধিক আহত হয়।

ওই ঘটনার পরের দিন ঢাকা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে চিকিৎসাধীন অবস্থায় মারা যান সাংবাদিক বুরহান উদ্দিন মুজাক্কির। এ ঘটনায় নিহতের বাবা বাদী হয়ে অজ্ঞাত একাধিক ব্যক্তিকে আসামি করে কোম্পানীগঞ্জ থানায় একটি হত্যা মামলা দায়ের করেন।

নাগরপুর উপজেলা ছাত্রলীগের নব গঠিত কমিটির আনন্দ র‌্যালী

নাগরপুর উপজেলা ছাত্রলীগের নব গঠিত কমিটির আনন্দ র‌্যালী

হাসান সাদী  নাগরপুর(টাঙ্গাইল)প্রতিনিধিঃ টাঙ্গাইলের নাগরপুরে উপজেলা ছাত্রলীগের নব গঠিত কমিটির আনন্দ র‌্যালী অনুষ্ঠিত হয়েছে। মঙ্গলবার,৩০ মার্চ  সকালে আনন্দ র‌্যালীটি উপজেলার গেট থেকে বের হয়ে নাগরপুর বাজারের প্রধান প্রধান মোড় প্রদক্ষিণ করে।

আনন্দ র‌্যালীতে উপজেলা আওয়ামীলীগের ত্রাণ ও সমাজ কল্যান বিষয়ক সম্পাদক মো. উজ্জল মোল্লা, সেচ্ছাসেবক লীগের সভাপতি বাবর আল মামুন, সাধারন সম্পাদক মো. ফারুক হোসেন, উপজেলা ছাত্রলীগের (ভারপ্রাপ্ত) সাবেক সাধারন সম্পাদক মো. আনিসুজ্জামান তুহিন উপস্থিত ছিলেন।

আনন্দ র‌্যালী শেষে উপজেলা মোড়ে এক সংক্ষিপ্ত আলোচনা সভায় বক্তরা বলেন, দীর্ঘদিন পর হলেও আজ নাগরপুর উপজেলা ছাত্রলীগের নতুন কমিটি পেয়ে সবাই খুশি। আগামী দিনের আন্দোলন সংগ্রামে এই কমিটি ভূমিকা রাখবে।টাঙ্গাইল-৬ (নাগরপুর-দেলদুয়ার) আসনের সংসদ আহসানুল ইসলাম টিটুর নেতৃত্বে এই কমিটি এগিয়ে যাবে বলে বক্তারা আশাব্যক্ত করেন।

 গত রবিবার জেলা ছাত্রলীগের প্যাডে নাগরপুর উপজেলা ছাত্রলীগের নতুন কমিটি ঘোষনা করেন। সভাপতি আজিম হোসেন রতন, সাধারন সম্পাদক মো. সজীব মিয়া, সহ সভাপতি মো.খায়রুল ইসলাম,যুগ্ন সাধারন সম্পাদক মো.খালীদ সহ ৩৬ সদস্য বিশিষ্ট কমিটির অনুমোদন দেন টাংগাইল  জেলা ছাত্রলীগ।

কয়রায় করোনা প্রতিরোধে খুলনা জেলা পুলিশ সুপারের নেতৃত্বে সচেতনতামুলক র‌্যালী ও মাক্স বিতরন

কয়রায় করোনা প্রতিরোধে খুলনা জেলা পুলিশ সুপারের নেতৃত্বে সচেতনতামুলক র‌্যালী ও মাক্স বিতরন

মোহাঃ ফরহাদ হোসেন কয়রা(খুলনা)প্রতিনিধিঃ খুলনা জেলার নবাগত পুলিশ সুপার মোহাম্মদ মাহবুব হাসানের নেতৃত্বে করোনা ভাইরাস প্রতিরোধে সচেতনতামুলক কার্যক্রমের অংশ হিসাবে কয়রা সদরে এক র‌্যালী অনুষ্ঠিত হয়। গতকাল ৩০ মার্চ সকাল ১১ টায় র‌্যালী শেষে পুলিশ প্রশাসনের পক্ষ থেকে মাস্ক বিতরন করা হয়। পরে তিন রাস্তার মোড়ে করোনা ভাইরাস প্রতিরোধে সচেতনতামুলক এক আলোচনা সভায় প্রধান অতিথির বক্তব্য খুলনার জেলা পুলিশ সুপার মোহাম্মদ মাহবুব হাসান বলেন, সম্প্রতি আবারও করোনা ভাইরাস সংক্রমন বৃদ্ধি পেয়েছে। এ থেকে পরিত্রান পেতে সকলকে সচেতন থাকতে হবে। কোন মানুষ মাস্ক ছাড়া ঘরের বাইরে প্রবেশ করতে পারবে না। তিনি আরও বলেন, করোনা ভাইরাস প্রতিরোধে সরকার নানামুখী পদক্ষেপ গ্রহন করেছে। সকলকে সেই নিয়ম মেনে চলতে হবে। করোনা ভাইরাস প্রতিরোধে বাংলাদেশ পুলিশ প্রশাসনের পক্ষ থেকে বিভিন্ন পদক্ষেপ গ্রহন করা হয়েছে বলে তিনি জানান। এ সময় উপস্থিত ছিলেন অতিরিক্ত জেলা পুলিশ সুপার আবুল কালাম আজাদ, কয়রা উপজেলা চেয়ারম্যান আলহাজ্ব এস এম শফিকুল ইসলাম, কয়রা থানার অফিসার ইনচাার্জ মোঃ রবিউল হোসেন, খুলনা জেলা ডিবির পুলিশ পরিদর্শক গোপাল চন্দ্র রায়, কয়রা থানার ওসি (তদন্ত) এস এম শাহাদাৎ হোসেন, উপজেলা আওয়ামীলীগের সাংগঠনিক সম্পাদক এস এম বাহারুল ইসলাম প্রমুখ। এর আগে খুলনা জেলার নবাগত পুলিশ সুপার মোহাম্মদ মাহবুব হাসান কয়রা থানায় পৌছালে অফিসার ইনচার্জের নেতৃত্বে তাকে ফুল দিয়ে শুভেচ্ছা জানানো হয়।  এ সময়  জেলা পুলিশ সুপার পুলিশ সদস্যদের উদ্দেশ্য বিভিন্ন দিক নির্দেশনামুলক বক্তব্য প্রদান করেন

আধিপত্য বিস্তার নিয়ে মোংলায় হিজড়াদের মধ্যে সংঘর্ষ, আহত-২

আধিপত্য বিস্তার নিয়ে মোংলায় হিজড়াদের মধ্যে সংঘর্ষ, আহত-২
আধিপত্য বিস্তার নিয়ে মোংলায় হিজড়াদের মধ্যে সংঘর্ষ, আহত-২
মোঃএরশাদ হোসেন রনি, মোংলা: আধিপত্য বিস্তার নিয়ে মোংলায় দু'গ্রুপে হিজড়াদের মধ্যে সংঘর্ষ হয়েছে। এতে শিলা (২২) ও শিখা (৫৫) গুরুতর আহত হয়েছেন। সোমবার (২৯ মার্চ) রাতে মামার ঘাট এলাকায় এ ঘটনা ঘটে। এদিকে এ ঘটনায় থানায় অভিযোগের প্রস্তুতি চলছে বলে জানা গেছে। 

আহত হিজড়া শিলা ও শিখা অভিযোগ করে মঙ্গলবার (৩০ মার্চ) সাংবাদিকদের বলেন, মোংলা, রামপাল ও খুলনার দাকোপ উপজেলার বিভিন্ন এলাকায় দুটি গ্রæপে ভাগ হয়ে কালেকশনসহ তাদের সামাজিক কর্মকান্ড করবেন। এই মর্মে শিখা ও শিলা এবং প্রেমা ও হাসি হিজড়া  নিজেদের মধ্যে তিন'শ টাকার ষ্ট্যাম্পে চুক্তি করেন। 

কিন্তু কিছুদিন না যেতেই সেই চুক্তি না মেনে প্রেমা হিজড়া শিলা ও শিখার এলাকায় ঢুকে কালেকশন শুরু করলে তারা বাধা দেয়। এতে ক্ষিপ্ত হয়ে সোমবার রাতে তাদের ওপর হামলা করে প্রেমাসহ তাদের দলের অন্যরা। এতে শিলা ও শিখা মারাত্মক ভাবে  আহত হন। তাই এ ঘটনায় থানায় অভিযোগ করবেন বলে জানান শিখা। 

এদিকে প্রেমা হিজড়া দাবি করেন, আমি কাউকে মারিনি-শিখা ও শিলা তাদের মারধর করেছে। #

নাগরপুর সহ সারাদেশে পবিত্র শবে বরাত পালিত

নাগরপুর সহ সারাদেশে পবিত্র শবে বরাত পালিত

ডা.এম.এ.মান্নান, টাংগাইল জেলা প্রতিনিধি:
ইবাদত-বন্দেগির মধ্য দিয়ে পবিত্র শবেবরাত পালন করেছেন ধর্মপ্রাণ মুসলমানরা। এ উপলক্ষে মসজিদে মসজিদে ছিল বিশেষ দোয়ার আয়োজন। করোনা থেকে মুক্তিতে সৃষ্টিকর্তার কাছে সাহায্য চাওয়া হয়। পাশাপাশি দেশ ও মুসলিম উম্মার শান্তি ও সমৃদ্ধি কামনা করা হয়।

শাবান মাসের ১৪ তারিখ দিবাগত রাতকে ভাগ্যরজনী মনে করেন মুসলমানরা। তাই এই রাতে আল্লাহর সন্তুষ্টি লাভের চেষ্টা ছিল ধর্মপ্রাণ মুসলমানদের। গুনাহ মাফ ও আল্লাহর সন্তুষ্টি লাভের আশায় রাতভর চলে ইবাদত-বন্দেগি, জিকির-আজকার।

শবেবরাত বা লাইলাতুল বরাতে মসজিদে মসজিদে ছিল বিশেষ দোয়ার আয়োজন। ইসলামী চিন্তাবিদগন জানান, বরকতময় রাতটিতে রয়েছে বিশেষ ফজিলত।

টাংগাইল জেলা নাগরপুর উপজেলার প্রানকেন্দ্রে অবস্হিত ঐতিহ্যবাহী দুয়াজানী কলেজ পাড়া জামে মসজিদে এশার নামাজ আর ইবাদত বন্দেগীর জন্য জিকিরের সহিত দলে দলে প্রবেশ করেন মুসল্লিরা। তারা জানান, সোমবার তারা রোজা রেখেছেন। মঙ্গলবারও নফল রোজা রাখবেন।অনেকেই সারারাত ইবাদত করবেন। ফজরের নামাজের পর বাসায় ফিরবেন।

বাংলাদেশসহ সারাবিশ্বের ধর্মপ্রাণ মুসলমানরা মহান আল্লাহর রহমত ও নৈকট্য লাভের আশায় নফল নামাজ, কোরআন তেলাওয়াত, জিকির, ওয়াজ ও মিলাদ মাহফিলসহ ইবাদত-বন্দেগির মধ্য দিয়ে রাত অতিবাহিত করেন। মহিমান্বিত এ রজনীতে মুসলিম উম্মাহর সুখ, শান্তি ও সমৃদ্ধি কামনা করে বিশ্বের মুসলমানরা বিশেষ মোনাজাত করেন। পবিত্র শবে বরাত মাহে রমজানেরও আগমনী বার্তা দেয়।

এদিকে, মসজিদে নফল নামাজ ইবাদত বন্দেগির পর মুসল্লিরা ভিড় করেন  বিভিন্ন কবরস্থানে। বিশেষ এই রাতে আত্মীয়-পরিবারের মধ্যে যারা মারা গেছেন তাদের কবরের পাশে দাড়িয়ে রুহের মাগফেরাত কামনায় দোয়া করেন।

ঝিনাইদহ জেলা বিএনপির উদ্যেগে বিক্ষোভ মিছিল ও সমাবেশ

ঝিনাইদহ জেলা বিএনপির উদ্যেগে বিক্ষোভ মিছিল ও সমাবেশ
ঝিনাইদহ জেলা বিএনপির উদ্যেগে বিক্ষোভ মিছিল ও সমাবেশ

খোন্দকার আব্দুল্লাহ বাশার,খুলনা ব্যুরো প্রধান: স্বাধীনতার সুবর্ণ জয়ন্তীর দিনে সারাদেশে বিচার বর্হীরভূত নৃশংশ  হত্যাকান্ড ও বি.এন.পি এবং সকল অঙ্গ সহযোগী সংগঠনের নেতাকর্মীদের উপর হামলা ও গ্রেফতারের প্রতিবাদে, ঝিনাইদহ জেলা বিএনপির উদ্যোগ মঙ্গলবার সকালে জেলা বিএনপি কার্যালয়ে সামনে  বিক্ষভ মিছিল ও প্রতিবাদ সমাবেশ অনুষ্ঠিত হয়।  সমাবেশে প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন জেলা বিএনপির আহবায়ক- অধ্যক্ষ এ্যাডঃ জনাব মোঃ এসএম মশিয়ুর রহমান,বিশেষ অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন জেলা বিএনপির সদস্য সচীব-
জনাব এ্যাডঃ মোঃ এমএ মজিদ,বিশেষ অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন জেলা বিএনপির যুগ্ন আহবায়ক- জনাব মোঃ আক্তারুজ্জামান আক্তার,বিশেষ অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন জেলা বিএনপির যুগ্ন আহবায়ক- জনাব মোঃ জাহিদুজ্জামান মনা,

বিশেষ অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন: সাবেক ছাত্রনেতা -ঝিনাইদহ সদর পৌর বিএনপির আহবায়ক-
ও জেলা বিএনপির যুগ্ন আহবায়ক -জননেতা জনাব
মোঃ আব্দুল মজিদ বিশ্বাস (ছোট মজিদ),

বিশেষ অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন জেলা বিএনপির যুগ্ন আহবায়ক- এ্যাডঃ কামাল আজাদ পান্নু,
জেলা যুবদলের সাধারণ সম্পাদক-জনাব মোঃ আশরাফুল ইসলাম পিন্টু,জেলা স্বেচ্ছাসেবক দলের সংগ্রামী সাংগঠনিক সম্পাদক -জনাব মোঃ শফিকুল ইসলাম শফি বিশ্বাস, জেলা যুবদলের সহ সভাপতি জনাব মোঃ মনিরুল ইসলাম,জেলা যুবদলের সহ সভাপতি- জনাব আনন, জেলা যুবদলের সাংগঠনিক সম্পাদক - মোঃ মোস্তাক হোসেন,জেলা ছাত্রদলের সাধারণ সম্পাদক - মোঃ মুসফিকুর রহমান মানিক,সহ অংগ সংগঠনের নেত্রী বৃন্দ।

মোংলার পশুর নদীতে আবারো ডুবে গেছে কয়লা বোঝাই লাইটার জাহাজ

মোংলার পশুর নদীতে আবারো ডুবে গেছে কয়লা বোঝাই লাইটার জাহাজ
মোংলার পশুর নদীতে আবারো ডুবে গেছে কয়লা বোঝাই লাইটার জাহাজ
মোঃএরশাদ হোসেন রনি, মোংলা :মোংলা পশুর নদীতে কয়লা বোঝাই এমভি ইফতি মাহমুদ নামক একটি লাইটার জাহাজ ডুবে গেছে।অতিরিক্ত পানির স্রোতে  মঙ্গলবার দুপুরে বন্দর জেঠি সংলগ্ন ক্রিক বয়া থেকে লাইটার জাহাজটি ছুটে গিয়ে অন্য একটি লাইটারের সাথে ধাক্কা লেগে ডুবে যায়। এসময় সাতরিয়ে তিরে উঠতে সক্ষম হয় লাইটারের ১০ নাবিক।
 মোংলা বন্দর লাইটার শ্রমিক ইউনিয়নের সহ সভাপতি মাইনুল হোসেন মিন্টু এতথ্য নিশ্চিত করে জানান,সোমবার রাতে বন্দরের হারাড়িয়া এলাকায় অবস্থানরত একটি বানিজ্যিক জাহাজ থেকে ৭০০ মেট্রিক টন কয়লা বোঝাই করে মঙ্গলবার সকালে ক্রিক বয়ায় বেধে রাখা হয় জাহাজটি। আজ বিকালে যশোরের নোয়াপাড়ার উদ্যেশ্যে ছেড়ে যাওয়ার কথা ছিলো।  
এর আগে ২৭ ফেব্রয়ারী রাতে মোংলা পশুর নদীতে ৭শ মে: টন কয়লা নিয়ে ডুবে যায়  এমভি বিবি -১১৪৮ নামক একটি লাইটার জাহাজ।

দিনাজপুরে নারী উদ্যোক্তা ও ক্রেতাদের মাঝে মিলনমেলা ও মতবিনিময় সভা অনুষ্ঠিত

দিনাজপুরে নারী উদ্যোক্তা ও ক্রেতাদের মাঝে মিলনমেলা ও মতবিনিময় সভা অনুষ্ঠিত
দিনাজপুরে নারী উদ্যোক্তা ও ক্রেতাদের মাঝে মিলনমেলা ও মতবিনিময় সভা অনুষ্ঠিত
মামুনুর রশিদ,দিনাজপুর প্রতিনিধি ॥ দিনাজপুরে নারীদের অনলাইন ব্যবসায়িক উদ্যোগকে আরো বেগমান করতে দিনাজপুরের দি স্কাই রেস্টুরেন্টে অনলাইন ভিত্তিক প্রতিষ্ঠান ''বাটারফ্লাই লাইফস্টাইল এন্ড বাটারফ্লাই কেক হাউস" এর স্বত্বাধিকারী রোকাইয়া চৌধুরী তন্বীর উদ্যোগে নারী উদ্যোক্তা ও ক্রেতাদের মাঝে মিলনমেলা ও মতবিনিময় সভা অনুষ্ঠিত হয়।
আয়োজক রোকাইয়া চৌধুরী বলেন, "আমি কাস্টমারের সাধ্যের মধ্যে তাদের চাহিদা ও পছন্দকে মাথায় রেখে হোমমেড কেক ও নিজস্ব ডিজাইনে কাস্টমাইজড পাঞ্জাবি, ফতুয়া,  শাড়ি, থ্রিপিস, কাপল ড্রেস, ফ্যমিলি কম্বো পোশাক তৈরি করছি।বিদেশী পন্যের ভিড়ে, দেশি পন্যকে এগিয়ে নিয়ে যাওয়াই আমার মূল লক্ষ্য। "
অনুষ্ঠানে বিশেষ আয়োজন ছিলো দেশীয় পোশাক, হাতে তৈরি গয়না, মুখরোচক আচার ও ঘর সাজানোর বিভিন্ন জিনিসপত্রের স্টল।অনুষ্ঠান শেষে ৬ জন সেরা ক্রেতাদের মাঝে ক্রেস্ট তুলে দেন বাটারফ্লাই লাইফস্টাইল ও কেক হাউস এর স্বত্বাধিকারী রোকাইয়া চৌধুরী তন্বী।অনুষ্ঠানটি করতে স্পন্সার হিসেবে ছিলো- কটোন লাভার্স, ঘরকুনো সিনজিন, জেসি বুটিকস্, বি কিচেন হাউস ও স্বাবাস কারুপন্য।



যৌবন হারিয়ে কপোতাক্ষ নদ এখন বাচ্চাদের খেলার মাঠ

যৌবন হারিয়ে কপোতাক্ষ নদ এখন বাচ্চাদের খেলার মাঠ


মোঃ সজীব হোসেন, মোহাম্মদপুর (ঝিকরগাছা): মাইকেল মধুসূদনের শৈশব ও কৈশোরের সাথে মিশে থাকা কপোতাক্ষ নদ আজ তার চির চেনা জল ও স্রোতের যৌবন হারিয়ে মৃতপ্রায় বৃদ্ধ মানুষের মত ধুকধুক করছে। কালের গহ্বরে হারিয়ে যাওয়া অসংখ্য নদের মত। যেখানে এক সময় জলের সাথে জেলেদের খেলা হতো দিন রাত, যার বুক চিরে চাঁদ উঁকি দিত; সেখানে আজ প্রখর রৌদ্র, মরুভূমির মত ফাটল দেখা যায় নদের বুকে। মৃত প্রায় নদী এখন বাচ্চাদের খেলার মাঠে পরিণত হয়েছে ছুটিপুর -মোহাম্মদ পুর ব্রিজ প্রান্তে। যার ফলস্বরূপ এক শ্রেণীর স্বার্থলোভী মানুষ নিজেদের আখের গোছাতে নদীর জমি ভোগ দখলের পায়তারা করছে। এছাড়া আশপাশের বর্জ্য-আবর্জনায় ডাস্টবিনে পরিণত হয়েছে এই নদ। বিশেষ করে পল্ট্রি ব্যবসায়ী ও গরু-ছাগলের মাংসের ব্যবসায়ীরাও তাদের বর্জ্য ফেলার কাজে ব্যবহার করে থাকে মাইকেলের চতুষ্পদী কবিতার  কপোতাক্ষ নদকে। যে নদের কথা তিনি হাজার হাজার মাইল দূর থেকেও ভুলতে পারেননি। অথচ আমাদের পাশে অনেক সরকারি উর্ধ্বতন কর্মকর্তা-কর্মচারী থাকা সত্তেও তাদের সু-নজর পড়তে দেখা যায় না। স্থানীয় জনগনের কাছে শুনলে বোঝা যায় কী দুর্দশার মধ্যে বসবাস করছে নদের পাড়ের অসংখ্য মানুষ। একফোটা পানির জন্য তাদের কী আহাজারি, কী দুঃখ কী কষ্ট, লোকমুখে অসংখ্য বার নদের নাব্যতা ফিরিয়ে আনতে ড্রেজিং এর কথা শোনা গেলেও কার্যকরি কোন পদক্ষেপ গ্রহণ করতে দেখা যায়নি। নানা কারণে বার বারই ড্রেজিং কাজ থমকে গেলেও নদকে কেন্দ্র করে এক শ্রেণীর মানুষের গড়ে তোলা মাছের ভেরি, জমি দখল করে পুকুর তৈরি বেড়েই চলেছে নিয়মিত। যার ফলস্বরূপ নদকে সংকীর্ণ খালে পরিণত হতে দেখা যাচ্ছে। নদে পানি না থাকায় প্রচন্ড গ্রীষ্মে আশপাশের গ্রামগঞ্জের টিউবওয়েল পানি থাকে না। ভোগান্তিতে দিন কাটে এই অঞ্চলের প্রতিটি মানুষের। তবুও এই অঞ্চলের মানুষ আশায় বুক বেধে আছে যে খুব দ্রুতই তাদের দুঃখ দূর্দশার অবসান ঘটবে।  কপোতাক্ষ নদ ফিরে পাবে তার পূর্বের যৌবন, জেলেরা ফিরে পাবে তাদের যুদ্ধের জলরাশিকে, অবশান হবে স্বার্থশিষ্ঠ ব্যক্তির কালহাতের ছোবলের, নদ মুক্তি পাবে জমি দখলের অভিশাপ থেকে, নদের দুই পাড়ে গড়ে উঠবে প্রসস্থ রাস্তা, রচিত হবে নতুন কবিতা, প্রাণ ভরে নিঃশ্বাস নেবে আমাদের নতুন প্রজন্ম, আবার দেখতে পাবে জলের খেলা, হয়তো দুর থেকে মাইকেল আবারও বলবে- 

সতত, হে নদ তুমি পড় মোর মনে

সতত তোমার কথা ভাবি এ বিরলে।

সতত যেমনি লোক নিশার স্বপনে

শোনে মায়া যন্ত্র ধ্বনি তব কলকলে

জুড়াই এ কান আমি ভ্রান্তির ছলনে।

বহু দেশ দেখিয়াছি বহু নদ দলে

কিন্তু এ স্নেহের তৃষ্ণা মেটে কার জলে

দুগ্ধস্রোতরূপি তুমি মাতৃভূমি স্তনে।

আর কি হে হবে দেখা যত দিন যাবে

প্রজারূপে রাজরূপ সাগরেরে দিতে

বারি রূপ কর তুমি এ মিনতি গাবে

বঙ্গজ জনের কানে সখে-সখারিতে।

নাম তার এ প্রবাসে মজি প্রেমভাবে

লইছে যে নাম তব বঙ্গের সঙ্গীতে।

(কপোতাক্ষ নদ : মাইকেল মধুসূদন দত্ত সংকলিত)

যে কাজ হবো হবো করে আজও থমকে আছে, সেখানে যেন নদের জোয়ার লাগে৷ নদী খনন কাজের সাথে সংশ্লিষ্ট ব্যক্তি- কর্মকতারা তাদের সুদক্ষ কার্যকরী পরিকল্পনা গ্রহনের মাধ্যমে দ্রুত বাস্তবায়নের দিকে নজর দেন সেই আশা করে নদকে কেন্দ্র করে জড়িত অসংখ্য মানুষ। নদে পানি না থাকায় কাজের জন্য উপযুক্ত সময় বলেও দাবি করছে স্থানীয় জনগন, স্থানীয় প্রকৌশল দ্রুতই এই বিষয়ে পদক্ষেপ গ্রহণ করবে বলে প্রত্যাশা করছি।


কেএন/আইটিএ-০৩/২১

দিনাজপুর মহিলা পরিষদের উদ্যোগে নারী নির্যাতন প্রতিরোধ বিষয়ে তরুণ-তরুণীদের সাথে মতিবিনিময় সভা অনুষ্ঠিত

দিনাজপুর মহিলা পরিষদের উদ্যোগে নারী নির্যাতন প্রতিরোধ বিষয়ে তরুণ-তরুণীদের সাথে মতিবিনিময় সভা অনুষ্ঠিত
দিনাজপুর মহিলা পরিষদের উদ্যোগে নারী নির্যাতন প্রতিরোধ বিষয়ে তরুণ-তরুণীদের সাথে মতিবিনিময় সভা অনুষ্ঠিত
মামুনুর রশিদ,দিনাজপুর প্রতিনিধি ॥ বাংলাদেশ মহিলা পরিষদ দিনাজপুর জেলা শাখার উদ্যোগে নারী নির্যাতন প্রতিরোধ বিষয়ে তরুণ-তরুনীদের সাথে মতবিনিময় সভা অনুষ্ঠিত হয়েছে।
বাংলাদেশ মহিলা পরিষদ, দিনাজপুর জেলা শাখার লিগ্যাল এইড উপ-পরিষদের উদ্যোগে নারী নির্যাতন প্রতিরোধ বিষয়ে তরুণ-তরুণীদের সাথে সকাল ১১টায় জেলা কার্যালয়ে মতবিনিময় সভার আয়োজন করে। উক্ত মত বিনিময় সভায় সভাপতিত্ব করেন বাংলাদেশ মহিলা পরিষদ, দিনাজপুর জেলা শাখার সভাপতি কানিজ রহমান। উক্ত মত বিনিময় সভায় স্বাগত বক্তব্য প্রদান করেন মহিলা পরিষদ, দিনাজপুর জেলা শাখার লিগ্যাল এইড সম্পাদক জিন্নুরাইন পারু।
তিনি বলেন, বর্তমান সময়ে নারী নির্যাতনের যে চিত্র ফুটে উঠেছে ,তা যেমন পাশবিক তেমনি ভয়াবহ। নারী নির্যাতনের ঘটনা সভ্য সুস্থ বিবেকবান মানুষকে বাক রুদ্ধ করে দিচ্ছে। সমাজে রন্ধ্রে রন্ধ্রে এই বিষাক্ত ছোবল নারীর প্রতি যেভাবে উদ্ধৃত হয়েছে তা থেকে পরিত্রান নেই দুই বছরের শিশু থেকে ষাটোর্ধ্ব বৃদ্ধারও। ধর্ষণ, গণধর্ষণ চলছে। পাশবিক নির্যাতনের শিকার নারীর জীবনে সুস্থভাবে বেঁচে থাকার অধিকার ভুলন্ঠিত হচ্ছে। অপরদিকে সমাজে বুক ফুলিয়ে ঘুরে বেড়ায় ধর্ষক-অর্থের জোরে, সামাজিক প্রতিপত্তি খাটিয়ে, পুলিশ-প্রশাসনকে হাত করে ফেলে। এ ধরণের অশালীন আচরণ প্রকাশ্যে বা অপ্রকাশ্যে ঘটতেই থাকে। রাষ্ট্র- সমাজ সচেতন মানুষ যদি নারীকে মানুষ হিসেবে বিবেচনায় এনে তাদের অধিকার ও মর্যাদা সম্পর্কে সচেতন না হয় এবং মানুষেরা যদি তাদের পাশে এগিয়ে না আসে এবং আইন-শৃঙ্খলা বাহিনী সদস্যরা যদি পুরুষতান্ত্রিকতা থেকে বের হয়ে না আসে, অর্থাৎ নারীবান্ধব না হয়, দোষীদের ধরা এবং দৃষ্টান্তমূলক শাস্তির ব্যবস্থা না করে তাহলে নারীর অংশগ্রহণ কখনই অবাধ, নিশ্চিত এবং নিরাপদ হবে না। সেক্ষেত্রে নারী ও পুরুষ সকলকেই বেরিয়ে আসতে হবে পিতৃতান্ত্রিক মানসিকতা ও সংস্কৃতি থেকে। তরুন সমাজ এই সংস্কৃতি নির্মাণে আমাদের বড় সহায়ক শক্তি। এদেশের জাগ্রত তরুন সমাজ সকল অন্ধকার, জরাজীর্ণতা, হতাশা মোকাবেলা করে নারী-পুরুষের বৈষম্য দূর করে গড়ে তুলবে নতুন গণতান্ত্রিক ও মানবিক সমাজ। এছাড়াও আরো উপস্থিত ছিলেন আফরোজা চৌধুরী সীমা, ছাত্রী লোপা কুন্ডু, তামান্না আকতার তনু, কৃষ্ণা মুর্মু, খুকি হেম্ব্রম, মাশিয়াত শারমিলী নৈইরিত, ছাত্র সিজান রহমান, নুর ইসলাম এবং সেচ্ছাসেবক আফসানা আফরোজ ইমু প্রমুখ। অনুষ্ঠান পরিচালনা করেন বাংলাদেশ মহিলা পরিষদ, দিনাজপুর জেলা শাখার সাংগঠনিক সম্পাদক রুবিনা আক্তার।


মহান স্বাধীনতা দিবসে পালন করেছে পটিয়া উপজেলা আওয়ামী মুক্তিযোদ্ধা প্রজন্মলীগ

মহান স্বাধীনতা দিবসে পালন করেছে পটিয়া উপজেলা  আওয়ামী মুক্তিযোদ্ধা প্রজন্মলীগ
মহান স্বাধীনতা দিবসে পালন করেছে পটিয়া উপজেলা  আওয়ামী মুক্তিযোদ্ধা প্রজন্মলীগ
সেলিম চৌধুরী স্টাফ রিপোর্টারঃ মহান স্বাধীনতা দিবসে বাংলাদেশ আওয়ামী মুক্তিযোদ্ধা প্রজন্মলীগ পটিয়া উপজেলার আয়োজনে পটিয়া কেন্দ্রীয় স্মৃতিসৌধে শ্রদ্ধা নিবেদন করা হয়। এ সময় উপস্থিত ছিলেন পটিয়া উপজেলা আওয়ামীলীগের  সভাপতি বীর মুক্তিযোদ্ধা আ ক ম সামশুজ্জামান চৌধুরী, সাধারণ সম্পাদক সাবেক পটিয়া পৌরসভার মেয়র অধ্যাপক হারুনুর রশীদ, বীর মুক্তিযোদ্ধা মেম্বার আহমদ ছফা, পটিয়া আইন কলেজের অধ্যাপক যদু রঞ্জন চৌধুরী, সাবেক ব্যাংক কর্মকর্তা আমির হোসেন, সংগঠনের কেন্দ্রীয় কমিটির সাংগঠনিক সম্পাদক আলমগীর আলম, উপজেলা সাধারন সম্পাদক মোহাম্মাদ ইদ্রিস, সহ সভাপতি আহমদ নুর, বেলাল,সাংগঠনিক সম্পাদক মোরশেদুর রেজা সবুজ,পটিয়া পৌরসভার সাংগঠনিক সম্পাদক হাসান মানিক, উপজেলা দপ্তর সম্পাদক এমরান হোসেন, মুক্তিযোদ্বা বিষয়ক সম্পাদক আলমগীর চৌধুরী,  সহ সম্পাদক ইব্রাহিম রানাসহ নেতৃবৃন্দ।

বড়লেখায় হিফজুল কোরআন এতিমখানা মাদ্রাসায় ডিপ ফ্রিজ প্রদান

বড়লেখায় হিফজুল কোরআন এতিমখানা মাদ্রাসায় ডিপ ফ্রিজ প্রদান
বড়লেখায় হিফজুল কোরআন এতিমখানা মাদ্রাসায় ডিপ ফ্রিজ প্রদান
আকরাম হোসাইন মৌলভীবাজার জেলা প্রতিনিধি :: মৌলভীবাজারের বড়লেখা উপজেলার সুপরিচিত সামাজিক সংগঠন বড়লেখা পাবলিকেশন সোসাইটির ব্যবস্থাপনায় সংগঠনের কার্যকরী কমিটির সিঃ সহসভাপতি তোফায়েল আহমেদ তুহেল এর প্রস্তাবনায় সংগঠনের আন্তরিক একজন প্রিয় শুভাকাঙ্ক্ষী আমেরিকা প্রবাসী ভাইয়ের অর্থায়নে আজ বাদ আছর বড়লেখা হিফযুল কোরআন এতিমখানা মাদ্রাসায় এক‌টি ডিপ ফ্রিজ প্রদান করা হয়।
এতে,, উপস্থিত ছিলেন পাবলিকেশন সোসাইটির সম্মানিত প্রতিষ্ঠাতা ও চেয়ারম্যান জনাব মাহতাব আল মামুন "সিনিয়র সহসভাপতি জনাব তোফায়েল আহমেদ তুহেল "সহসভাপতি জনাব আহমেদ জাকারিয়া প্রমুখ।
ফ্রিজ গ্রহণ করেন উক্ত মাদ্রাসার প্রতিষ্ঠিতা মাওলানা খলিলুর রহমান।