করোনা থামাতে পারেনি রিসোর্স টিচারদের(আরটি) কার্যক্রম

করোনা থামাতে পারেনি রিসোর্স টিচারদের(আরটি) কার্যক্রম




মোঃকাউসার আলী,চুয়াডাঙ্গা প্রতিনিধিঃমহামারী করোনায় থমকে গেছে সারা বিশ্ব।থমকে গেছে বিভিন্ন সেক্টরের কার্যক্রম। করোনার ভয়াল থাবায় বাংলাদেশও মারাত্মকভাবে আক্রান্ত।স্থবির হয়ে পড়েছে জনজীবন।কাজের গতিতে এসেছে স্থবিরতা।সারা পৃথিবীর মতো বাংলাদেশেরও মারাত্মক ক্ষতি হয়েছে অর্থনীতি এবং শিক্ষাখাতে।কিন্তু শিক্ষাখাতের এ ক্ষতি কিছুটা হলেও পুষিয়ে দিতে নিরলস পরিশ্রম করে যাচ্ছে সেকেন্ডারি এডুকেশন সেক্টর ইনভেস্টমেন্ট প্রোগ্রাম(সেসিপ) কর্তৃক অস্থায়ীভাবে নিয়োগকৃত রিসোর্স টিচারগণ।

উল্লেখ্য যে,এ মহামারী থেকে শিক্ষার্থীদের নিরাপদে রাখতে সরকার গত ১৭ মার্চ থেকে শিক্ষা প্রতিষ্ঠান বন্ধ করে দেয়া হয়।ফলে শিক্ষা ব্যবস্থা এবং শিক্ষার্থীরা পড়ে এক মারাত্মক ক্ষতির মুখে।আর এ ক্ষতি কিছুটা হলেও পুষিয়ে দিতে রিসোর্স টিচাররা নিজ উদ্যোগে আয়োজন করে অনলাইনে ক্লাস পরিচালনার।সে লক্ষ্যে রিসোর্স টিচাররা ইউটিউবে নিজের চ্যানেল এবং Resource Teachers' Online SCHOOL-SESIP নামে পেজ খুলে নিয়মিত অনলাইন ক্লাসের কার্যক্রম পরিচালনা করে আসছে এবং এর ফলে শিক্ষার্থীরা উপকৃত হচ্ছে।তাছাড়াও রিসোর্স টিচারদের ক্লাস বিভিন্ন বিভাগীয় এবং জেলা ভিত্তিক যে অনলাইন স্কুলগুলো আছে সেখানে প্রশংসা পাচ্ছে।আসলে শিক্ষার্থীদের ক্ষতির কথা চিন্তা করে যতদিন প্রতিষ্ঠান না খুলবে ততদিন রিসোর্স টিচারদের এ অনলাইন ক্লাস কার্যক্রম চলতে থাকবে।

এখানে আরও উল্লেখ্য যে,প্রত্যন্ত এলাকার শিক্ষা প্রতিষ্ঠানে শিক্ষার্থীদের ঝরে পড়া রোধ,ইংরেজি,গণিত এবং বিজ্ঞান বিয়ষের ভীতি দূর করে যোগ্য হিসাবে গড়ে তোলা,দূর্বল ছাত্র-ছাত্রী চিহ্নিত করে মেধাবি হিসাবে গড়ে তোলা,বাল্য বিবাহ রোধ সহ শিক্ষার গুণগত মান বৃদ্ধির লক্ষ্যে ২০১৮ সালের মার্চ মাসে সেকেন্ডারি এডুকেশন সেক্টর ইনভেস্টমেন্ট প্রোগ্রামের (সেসিপ)অধীনে বিষয় ভিত্তিক(ইংরেজি,গণিত, বিজ্ঞান) ১০০০ অস্থায়ী রিসোর্স টিচার (আরটি) নিয়োগ করা হয় এবং সেই ২০১৮ সাল থেকে তারা নিরলসভাবে পরিশ্রম করে যাচ্ছে যা তাদের নিয়োগকৃত প্রতিষ্ঠানের ২০১৯ এবং ২০২০ সালের ফলাফল দেখলেই বোঝা যায়।ইতোমধ্যে সরকার যে উদ্দেশ্য নিয়ে রিসোর্স টিচার নিয়োগ প্রদান করেছিল তা তারা শতভাগ পূরণে সক্ষম হয়েছে।প্রত্যন্ত এলাকায় রিসোর্স টিচার নিয়োগের ফলে শিক্ষার হার যেমন বেড়েছে তেমনি বেড়েছে ভাল ফলাফল।যেসব প্রতিষ্ঠানে পাশের হার ছিল কম এবং এ+ এর সংখ্যা একেবারেই ছিলনা সেসব শিক্ষা প্রতিষ্ঠানে প্রথমবারের মত পেয়েছে এ+ এবং পাশের হার বেড়ে হয়েছে ৯০% এবং এমনকি অনেক শিক্ষা প্রতিষ্ঠানে ১০০% পাশের রেকর্ড করেছে যার পুরোটায় রিসোর্স টিচারদের পরিশ্রমের ফল।ফলে সেসব প্রত্যন্ত এলাকার শিক্ষার্থী এবং অভিভাকদের কাছে গ্রহনযোগ্যতা পেয়েছে রিসোর্স টিচাররা।

তাই যথাযথ কর্তৃপক্ষের কাছে আকুল আবেদন এই যে, এসব অস্থায়ী নিয়োগকৃত রিসোর্স টিচারদের স্থায়ী ব্যবস্হা করতে মর্জি হন এবং এসব মেধাবি রিসোর্স টিচারদের দক্ষতা কাজে লাগিয়ে দেশের সেবা করার সুযোগদানে বাধিত করবেন।


আত্রাইয়ে সেই অসহায় অসুস্থ মায়ের বাড়ীতে উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা

আত্রাইয়ে সেই অসহায় অসুস্থ মায়ের বাড়ীতে উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা




মোঃ ফিরোজ হোসাইন রাজশাহী ব্যুরোঃআত্রাইয়ে সেই অসহায় অসুস্থ মায়ের দায়িত্ব নিলেন ইউএনও।

ছেলে ও ছেলে বউয়ের অবহেলায় ষাটরোর্ধ্ব অসুস্থ সেই বৃদ্ধা জোহরা বেওয়ার দায়িত্ব নিলেন আত্রাই উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা মো.ছানাউল ইসলাম।

আজ বৃহস্পতিবার বিকেলে উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা (ইউএনও) ছানাউল ইসলাম জোহরা বেওয়ার অবস্থা সরেজমিন দেখার জন্য তার বাড়ি আত্রাই উপজেলার হাটুরিয়া গ্রামে যান । এ সময় তিনি অসুস্থ জোহরা বেওয়াকে এক বস্তা চাউল,ফলমূল ও চিরা দিয়ে, ইউপি সদস্য আফজাল হোসেনকে অসুস্থ বৃদ্ধা জোহরা বেওয়ার দেখা শোনার জন্য নির্দেশ দেন ।

গত বৃহস্পতিবার(১৩আগষ্ট) বিকেলে বিভিন্ন অনলাইন মিডিয়া ও সামাজিক মাধ্যমে জোহরা বেওয়াকে নিয়ে অসহায় একটা বৃদ্ধা মায়ের মানবেতর জীবন যাপন শিরোনামে প্রতিবেদন প্রকাশ করে আত্রাই প্রেসক্লাবের সদস্য ও বাংলাদেশ অনলাইন রিপোর্টার্স ক্লাব আত্রাই উপজেলা শাখার সভাপতি ও সাধারণ সম্পাদক সহ সদস্য বৃন্দ।

সংবাদটি প্রকাশের পর ওই বৃদ্ধার জন্য অনেকে দুঃখ সমাবেদনা এবং তাকে সহযোগিতা করার জন্য মতামত প্রকাশ করেন।


এদিকে ঘটনাটি নজরে আসলে উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা ছানাউল ইসলাম ছুটে যান মানবতার হাত বাড়িয়ে দেন হাটুরিয়ার ওই বৃদ্ধার বাড়িতে।

পরে মানবতার হাত বাড়িয়ে দেন আত্রাই থানার ওসি মোসলেম উদ্দিন তিনি ও চাল সহ খাদ্য সামগ্রী পাঠান ওই বৃদ্ধার কাছে।


স্থানীয়রা জানান, স্বামী বেঁচে থাকা অবস্থায় গরীব হলেও সন্তানদের নিয়ে ভালোভাবেই দিন কেটেছে সৈয়দ আলী ও জোহরার দম্পতির।সৈয়দ আলী মৃত্যুবরণ করায়। সংসারে টানাটানি শুরু হয়।


কিন্তু গর্ভধারিণী মাকে করতে হচ্ছে আজ মানবেতর জীবনযাপন । বয়সের ভার আর অসুস্থতার কারণে ছেলে ও ছেলের বউয়ের কাছে হয়েছে অপ্রিয়।তার পর প্যারালাইসিসে হয়েছে পুঙ্গু।

এদিকে জোহরার ছেলে বলেন, আমি সামান্য আয়ের মানুষ। টাকার অভাবে মায়ের ভালো চিকিৎসা করাতে পারছি না।

সাংবাদিক এসেছিল তারা যাবার পর আমি চেষ্টা করছি মাকে যত্ম আদর করতে। ভরণপোষণের জন্য সরকার আইন করেছে জানতাম না সাংবাদিক আসাতে জেনেছি।

উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা ছানাউল ইসলাম জানান বিষয়টি জানার পর আমি খুবই ব্যাথিত হয়েছি। আজ থেকে অসুস্থ জোহরা বেওয়ার চিকিৎসাসহ যাবতীয় ব্যয়ভার তিনিই বহন করবেন।

উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা ছানাউল ইসলাম বৃদ্ধা জোহরার বাড়ী পরিদর্শনের সময় উপস্থিত ছিলেন সহকারী কমিশনার (ভূমি)আত্রাই আরিফ মিশু ও স্হানীয় ইউপি সদস্য ও সাংবাদিক বৃন্দ।

কিশোরগঞ্জে যৌতুকের দাবিতে গৃহবধুকে পিটিয়ে হত্যার অভিযোগ, স্বামীসহ গ্রেপ্তার ৩

 কিশোরগঞ্জে যৌতুকের দাবিতে গৃহবধুকে পিটিয়ে হত্যার অভিযোগ, স্বামীসহ গ্রেপ্তার ৩



মো: লাতিফুল আজম,কিশোরগন্জ নীলফামারী প্রতিনিধি:নীলফামারীর কিশোরগঞ্জে গৃহবধু ওমেনা খাতুনকে (২০) পিটিয়ে হত্যার অভিযোগে স্বামী, শ্বশুড় ও শাশুড়িকে গ্রেপ্তার করেছে পুলিশ।


বৃহস্পতিবার ভোর রাত ৪ টার দিকে উপজেলার রণচণ্ডী ইউনিয়নের সোনাখুলি ডাঙ্গাপাড়া গ্রাম থেকে গৃহবধুর ঝুলন্ত মরদেহ উদ্ধার করে ময়না তদন্তের জন্য দুপুরের জেলা মর্গে পাঠায় পুলিশ।


গ্রেপ্তারকৃতরা হলেন ওই গৃহবধুর স্বামী আল আমীন (২৬), শ্বশুড় জহুরুল মিয়া (৬০) এবং শাশুড়ি অসনা বেগম (৫৮)। 

তাদেরকে আত্নহত্যার প্ররোচনার মামলায় গ্রেপ্তার করা হয়েছে বলে জানান কিশোরগঞ্জ থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা মো. আব্দুল আউয়াল। 

নিহত ওমেনা খাতুনের বাবা আয়নাল হোসেন গণমাধ্যম কর্মীদের কাছে অভিযোগ করে বলেন,“রাত ১১ টার দিকে এলাকাবাসীর কাছ থেকে মেয়ের মৃত্যুর খবর পাই। এসে জামাই আল আমীন ও তার মা অশনা বেগমকে বাড়িতে না পেয়ে আমার সন্দেহ হলে পুলিশে খবর দেই। পরে পুলিশ এসে মেয়ের মরদেহ উদ্ধার করে থানায় নিয়ে যায়। 

তিনি বলেন,“বিয়ের সময় যৌতুকের দাবির ২০ হাজার টাকা পরিশোধ করি। পরবর্তিতে আরও ৫০ হাজার টাকার জন্য চাপ সৃষ্টি করে। টাকা না পেয়ে বিভিন্ন সময়ে মেয়ের স্বামী, শ্বশুর ও শাশুরী মিলে আমার মেয়ের ওপর শারিরীক ও মানষিক নির্যাতন চালাতে থাকে। বুধবারও তারা আমার মেয়েকে পিটিয়ে হত্যার পর মরদেহ ঝুলিয়ে রেখে আত্নহত্যার খবর প্রচার করে। আমি আমার মেয়ের হত্যার বিচার চাই।”

এলাকাবাসী জানায়, গত ১৬ মাস আগে ইউনিয়নের সোনাখুলি ডাঙ্গপাড়া গ্রামের আয়নাল হোসেনের মেয়ে ওমেনা খাতুনের সঙ্গে একই গ্রামের জহুরুল মিয়ার ছেলে আল আমীনের বিয়ে হয়। গত ২৬ দিন আগে আদের এক ছেলে সন্তানের জম্ম হয়। বুধবার রাত সাড়ে ১০টার দিকে ওমেনার মৃত্যুর খবর পাওয়া গেলে বৃহস্পতিবার সকালে পুলিশ এসে মরদেহ উদ্ধার করে নিয়ে যায়।


কিশোরগঞ্জ থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা জানান,‘গৃহবধু ওমেনা খাতুনের ঝুলন্ত মরদেহ উদ্ধার করে ময়না তদন্তের জন্য জেলা মর্গে পাঠানো হয়েছে। এ ঘটনায় ওই গৃবধুর বাবা  আয়নাল হোসেন বাদী হয়ে আত্নহত্যার প্ররোচনার একটি মামলা দায়ের করায় গৃহবধুর স্বামী, শ্বশুড় এবং শাশুড়িকে গ্রেপ্তার করা হয়েছে

স্বাভাবিকের জোয়ারের চেয়ে পানি বৃদ্ধি পাওয়ায় আবারো প্লাবিত হলো কয়রা

স্বাভাবিকের জোয়ারের চেয়ে পানি বৃদ্ধি পাওয়ায় আবারো প্লাবিত হলো কয়রা

 


কয়রা প্রতিনিধিঃ নিম্মচাপের ফলে নদীতে স্বাভাবিক জোয়রের চেয়ে অতিমাত্রায় পানির উচ্চতা বেড়ে যাওয়ায় কযরা সদর ইউনিয়নের ঘাটাকালি ও হরিনখোলার রিংবাঁধ ভেঙে বিস্তৃর্ণ এলাকা আবারও প্লাবিত হয়েছে। বৃহস্পতিবার দুপুরের জোয়রের পানিতে রিংবাঁধ ভেঙে যায় এবং প্রায় ২ হাজার মিটার রিংবাঁধ ছাপিয়ে পানি প্রবেশ করেছে বলে স্থানীয়রা জানিয়েছেন। উল্লেখ্য ২০ মে আম্পানে ঘাটাখালি গ্রামের কপোতাক্ষ নদীর ১৫০ মিটার ভেড়িবাঁধ ভেঙে উপজেলা সদর সহ ৯ টি গ্রাম প্লাবিত হয়। এসময় দীর্ঘ এক মাস জোয়ারভাটার কারনে প্লাবিত এলাকায় সহস্্রাধীক বাড়ীঘর, ৫ শতাধিক চিংড়ী ঘের সহ রাস্তাঘাটের ব্যাপক ক্ষতি সাধন হয়। তবে পানি উন্নয়ন বোর্ডের সহযোগিতায় সাধারণ জনগন রিংবাঁধ দিয়ে পানি আটকাতে সক্ষম হয়। কিন্তু নিম্মচাপের কারনে নদীতে অস্বাভাবিক জোয়ারে পানি বৃদ্ধি পাওয়ায় উক্ত রিংবাঁধ ভেঙে পানি ঢোকায় ঘাটাকালি হরিনখোলা, ২নং কয়রা ও গোবরা গ্রাম প্লাবিত হয়েছে। সূত্র জানায় রাতের মধ্যে রিংবাঁধ সংস্কার করা না হলে শুক্রবার আরও নতুন নতুন এলাকা প্লাবিত হবে। স্থানীয় ইউপি চেয়ারম্যান সাংবাদিক হুমায়ুন কবির জানান, স্থানীয়ভাবে রাতের মধ্যে পানি আটকানোর জোর চেষ্টা চলছে। তিনি বলেন, মাননীয় সংসদ সদস্য আলহাজ্ব আকতারুজ্জামান বাবু বাঁধ আটকানোর ব্যপারে জরুরী সহযোগিতার আশ্বাস দেওয়ায় জনগন আশ্বস্ত হয়েছেন। অন্যদিকে কাশিরহাটখোলার বাঁধ দিয়ে আসা জোয়ারের পানি কয়রা ইউনিয়নের ২ ও ৩ নং কয়রা গ্রামের কিছু এলাকায় প্রবেশ করেছে বুধবার বিকেল থেকে।এ বিষয় পানি উন্নয়ন বোর্ডের স্থানীয় শাখা কর্মকর্তারসাথে যোগাযোগ করেও পাওয়া যায় নি।

রাঙ্গাবালীতে জোয়ারের পানিতে ভাসছে লক্ষ টাকার মাছ, দিশেহারা মৎস ব্যবসায়ীরা

 রাঙ্গাবালীতে জোয়ারের পানিতে ভাসছে লক্ষ টাকার মাছ, দিশেহারা মৎস ব্যবসায়ীরা




তুহিন আহমেদ রাঙ্গাবালী প্রতিনিধিঃপটুয়াখালী জেলার রাঙ্গাবালী উপজেলার আমাবস্যায় জোয়ারের পানিতে মৎস্য ঘের তলিয়ে লক্ষ লক্ষ টাকার মাছ ভেসে গেছে। রাঙ্গাবালী উপজেলার ৫টি ইউনিয়নের এলাকার মানুষের লক্ষ লক্ষ টাকার মাছ জোয়ারের পানিতে চলে যায়।(২০শে আগস্ট বৃহস্পতিবার সকাল থেকে দুপুর ২টা পর্যন্ত এ জোয়ারের পানি প্রবাহিত হয়।

এতে রাঙ্গাবালী উপজেলার আটটি গ্রাম ও নিম্নাঞ্চল প্লাবিত হয়েছে। উপজেলার ছোটবাইশদিয়া ইউনিয়নের জাকির হাওলাদার জানান, আমাবস্যার পানিতে নিঃস্ব করে দিল একদিকে মহামারী শূন্যতা কাটিয়ে না উঠতেই আবার অন্যদিকে আমাবস্যার জোয়ারের পানিতে সব মাছ চলে গেছে তাই দিশেহারা হয়ে পরছি।

উপজেলা শ্রমিকলীগের সভাপতি রওশন মৃধা জানান,

আমাবস্যার কারণে জোয়ারের পানিতে আমার তিনটি মাছের ঘের থেকে কম হল অর্ধ কোটি টাকার সম্পদ নষ্ট হয়ে গেল। রাঙ্গাবালী উপজেলা মৎস্য অফিসার বলেন, আমরা প্লাবিত অঞ্চলগুলো পরিদর্শন করবো। তারপর যেসব মৎস্য খামারিদের ক্ষতি হয়েছে তাদের তালিকা তৈরি করে অধিদফতরে পাঠানো হবে।

খালিশপুরে হত্যাকান্ডের প্রতিবাদে খুলনা মহানগর ছাত্রলীগের বিবৃতি

 খালিশপুরে হত্যাকান্ডের প্রতিবাদে খুলনা মহানগর ছাত্রলীগের বিবৃতি



তুহিন রানা (আব্রাহাম)  খুলনা প্রতিনিধিঃগত মঙ্গলবার খুলনা খালিশপুরে সন্ত্রাসীদের হামলায় একজন নিহত হওয়ায় এবং খুলনা মহানগর ছাত্রলীগের সদস্য জোবায়ের হোসেন সহ আরও একজন আহত হওয়ার ঘটনায় তীব্র নিন্দা ও প্রতিবাদ জানিয়ে বিবৃতি দিয়েছে খুলনা মহানগর ছাত্রলীগ। এ ঘটনায় খুলনা মহানগর ছাত্রলীগ নেতৃবৃন্দ তীব্র নিন্দা ও প্রতিবাদ জানায় সাথে সাথে নিহতের বিদেহী আত্মার মাগফিরাত কামনা ও তার পরিবারের প্রতি গভীর শোক ও সমবেদনা প্রকাশ করছি।খুলনা মহানগর ছাত্রলীগ নেতৃবৃন্দ আরও বলেন এই ঘটনার সাথে মহানগর ছাত্রলীগের কেউ জড়িত নয়ে এবং এই ঘটনার সাথে যে বা যারাই জড়িত তাদের কে দ্রুত চিহ্নিত করে আইনের আওতায় এনে দৃষ্টান্তমূলক শাস্তির জন্য প্রশাসনের নিকট আহবান জানাচ্ছি। বিবৃতিদাতারা হলেন খুলনা মহানগর ছাত্রলীগের সভাপতি শেখ শাহাজালাল হোসেন সুজন ও সাধারণ সম্পাদক আসাদুজ্জামান রাসেল।

জোয়ারের পানি বৃদ্ধি রাঙ্গাবালীর ৮ গ্রাম প্লাবিত, দুর্ভোগে মানুষ

জোয়ারের পানি বৃদ্ধি রাঙ্গাবালীর ৮ গ্রাম প্লাবিত, দুর্ভোগে মানুষ




তুহিন আহমেদ রাঙ্গাবালী প্রতিনিধিঃ

আমাবস্যার প্রভাবে জোয়ারের পানি বেড়ে পটুয়াখালীর রাঙ্গাবালী উপজেলার ৮টি গ্রাম প্লাবিত হয়েছে। বৃহস্পতিবার সাড়ে পাঁচ ঘন্টার জোয়ারে ওইসব গ্রামের ভাঙা বেড়িবাঁধ দিয়ে লোকালয়ে পানি ঢুকে পড়ে। এতে পানিবন্দি হয়ে বিপাকে পড়ে হাজারও মানুষ।


আমাবস্যার কারণে দ্বিতীয় দিনের মত নদ-নদীর পানি স্বাভাবিকের চেয়ে ৩-৪ ফুট বৃদ্ধি পায়। বৃহস্পতিবার সকাল ৮ টা থেকে দুপুর দেড়টা পর্যন্ত এ জোয়ারের পানি প্রবাহিত হয়। স্থানীয়রা জানায়, আম্পানসহ বিভিন্ন দুর্যোগে ভেঙে থাকা সংস্কারবিহীন বন্যা নিয়ন্ত্রণ বেড়িবাঁধ দিয়ে পানি ঢুকে উপজেলার চালিতাবুনিয়া ইউনিয়নের চালিতাবুনিয়া বাজার, বিবির হাওলা, গোলবুনিয়া, চরলতা, মধ্য চালিতাবুনিয়া ও মরাজাঙ্গী গ্রাম প্লাবিত হয়। একইসঙ্গে ভাঙা বেড়িবাঁধ দিয়ে চরমোন্তাজ ইউনিয়নের চরআন্ডা গ্রামে এবং ছোটবাইশদিয়া ইউনিয়নের কোড়ালিয়া গ্রামের লোকালয়ে পানি ঢুকে যায়।

হবিগঞ্জে ইউপি চেয়ারম্যান মুখলিছ মিয়া সপদে বহাল

 হবিগঞ্জে ইউপি চেয়ারম্যান মুখলিছ মিয়া সপদে বহাল




লিটন পাঠান হবিগঞ্জ জেলা প্রতিনিধিঃহবিগঞ্জ জেলার শায়েস্তাগঞ্জ উপজেলার নূরপুর ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান মো. মুখলিছ মিয়ার সাময়িক বরখাস্তের আদেশ স্থগিত করেছে এবং তাঁকে চেয়ারম্যান পদে পূর্ণ বহালের নির্দেশ দিয়েছেন হাইকোর্ট (১৯-আগস্ট) বাংলাদেশ সুপ্রিম কোর্টের হাইকোর্ট বিভাগ এ আদেশ দেন। চেয়ারম্যান মোঃ মুখলিছ মিয়ার পক্ষে আদালতে লড়েছেন সিনিয়র এডভোকেট আমিনুল ইসলাম।


জানা গেছে, নূরপুর ইউনিয়ন পরিষদ কার্যালয়ে গত ৮ মে অভিযান পরিচালনা করেন হবিগঞ্জের নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট ইয়াসিন আরাফাত রানা। এ সময় সরকারি ত্রাণ বিতরণ করার জন্য সেখানে দেওয়া দুই হাজার কেজি চালের মধ্যে পাওয়া যায় এক হাজার ৭০০ কেজি চাল। ৩০০ কেজি চালের হদিস না মেলায় বাকি চাল জব্দ করেন এবং অনিয়মের অভিযোগে গত ১৩ মে স্থানীয় সরকার (ইউনিয়ন পরিষদ) আইন, ২০০৯ এর ৩৪ (১) অনুযায়ী তাকে সাময়িক বরখাস্ত করা হয়।


আদালতের প্রতি সম্মান রেখে গত ১৩ জুলাই হবিগঞ্জের সিনিয়র জুডিসিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট নূরুল হুদা চৌধুরীর আদালতে হাজির হয়ে জামিন প্রার্থনা করলে আদালত তার জামিন নামঞ্জুর করে কারাগারে পাঠানোর নির্দেশ দেন।

এরপর ২০ জুলাই জামিনে মুক্ত হয়ে তিনি বাংলাদেশ সুপ্রীম কোর্টের হাইকোর্ট বিভাগে উক্ত আদেশের বিরুদ্ধে আপিল করেন। দীর্ঘ শুনানী শেষে হাইকোর্ট বিভাগের বিচারপতি এম এনায়েতুর রহিমের বেঞ্চ মঙ্গলবার মুখলিছ মিয়াকে ৭নং নুরপুর ইউনিয়ন পরিষদ চেয়ারম্যান পদে বহালের আদেশ দেন।


এ বিষয়ে নুরপুর ইউনিয়ন পরিষদ চেয়ারম্যান মুখলিছ মিয়া বলেন, কতিপয় স্বার্থন্বেষী মহলের মিথ্যা অভিযোগের প্রেক্ষিতে স্থানীয় সরকার বিভাগ এ আদেশ দিয়েছিল। উক্ত অভিযোগ হাইকোর্টের আপিল বিভাগে মিথ্যা প্রমানিত হওয়ায় আমাকে সপদে বহাল রেখে সকল কার্যক্রম পরিচালনার আদেশ দেন।

বঙ্গবন্ধুর সোনার বাংলা গড়তে সবাই কে একসাথে কাজ করতে হবেঃ চৌগাছায় জেলা প্রশাসক তমিজুল ইসলাম

বঙ্গবন্ধুর সোনার বাংলা গড়তে সবাই কে একসাথে কাজ করতে হবেঃ চৌগাছায় জেলা প্রশাসক তমিজুল ইসলাম




চৌগাছা(যশোর)প্রতিনিধিঃআজ বৃহস্পতিবার চৌগাছা উপজেলা পরিষদের বিভিন্ন দপ্তরের কর্মকর্তাবৃন্দ, জনপ্রতিনিধি ও গণ্যমান্য ব্যক্তিবর্গের সাথে পরিচিতি ও মতবিনিময় সভায় প্রধান অতিথির বক্তব্যে যশোরের জেলা প্রশাসক (ডিসি) তমিজুল ইসলাম খান বলেছেন, বঙ্গবন্ধুর সোনার বাংলা গড়তে  সবাইকে একসাথে কাজ করতে হবে। কেননা আমরা সকলেই একই মায়ের সন্তান। তা হলো বাংলা মায়ের। এই বাংলাদেশের সৃষ্টিতে বঙ্গবন্ধুর ভূমিকা অপরিসীম।


তিনি বলেন,করোনাভাইরাসের এ সময়ে সবাইকে স্বাস্থ্যবিধি মানতে হবে এবং বাধ্যতামূলক ভাবে মাস্ক পরতে হবে। না মানলে প্রয়োজনে আইন প্রয়োগ করতে হবে।


তিনি আরও বলেন, মাননীয় প্রধানমন্ত্রীর নির্দেশ অনুযায়ী এক ইঞ্চি কৃষি জমিও চাষের বাইরে রাখা যাবে না। সরকারের সকল পলিসি বাস্তবায়নে স্বচ্ছতা বজায় রেখে দ্রুত সম্পাদন করতে হবে। কোন কাজ ফেলে রাখবেন না। প্রয়োজনে সরাসরি আমার সহায়তা নেবেন।

অনুষ্ঠিত এই সভায় সভাপতিত্ব করেন উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা প্রকৌশলী (ইউএনও) এনামুল হক।


উপজেলা কৃষি কর্মকর্তা রইচ উদ্দিন ও উপজেলা প্রাণি সম্পদ কর্মকর্তা প্রভাষ চন্দ্র গোস্বামীর যৌথ ডিজিটাল সঞ্চালনায় অন্যান্যের মধ্যে বক্তৃতা করেন, উপজেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি ও সাবেক উপজেলা পরিষদ চেয়ারম্যান বীরমুক্তিযোদ্ধা এস.এম. হাবিবুর রহমান, উপজেলা পরিষদ ভাইস চেয়ারম্যান ও উপজেলা যুবলীগের আহবায়ক দেবাশীষ মিশ্র জয়, চৌগাছা থানার ওসি রিফাত খান রাজীব, উপজেলা মুক্তিযোদ্ধা ঐক্য পরিষদের সভাপতি অবসরপ্রাপ্ত সোনালী ব্যাংক কর্মকর্তা আব্দুস সালাম, উপজেলা মুক্তিযোদ্ধা সংসদের সাবেক কমান্ডার ডা. নূর মোহাম্মদ প্রমূখ।

অনুষ্ঠানে জেলা প্রশাসককে উপজেলার বিভিন্ন সরকারি দপ্তরের কর্মকর্তা ও উপজেলার বিভিন্ন বিষয়ে ডিজিটাল পরিচিতি করিয়ে দেন সহকারী কমিশনার (ভূমি) নারায়ণ চন্দ্র পাল।

অনুষ্ঠানে আরও  উপস্থিত ছিলেন, উপজেলা স্বাস্থ্য ও পরিবার পরিকল্পনা কর্মকর্তা ডা. লুৎফুন্নাহার লাকি, 

মৎস্য অফিসার এসএম শাহ্জাহান সিরাজ, উপজেলা প্রকৌশলী আব্দুল মতিন, পল্লী বিদ্যুতের ডিজিএম প্রকৌশলী জিয়াউল ইসলাম কামাল, উপজেলা মাধ্যমিক অফিসার আবুল কালাম রফিকুজ্জামান, প্রাথমিক শিক্ষা কর্মকর্তা মোস্তাফিজুর রহমান, উপজেলা খাদ্য কর্মকর্তা আশরাফুজ্জামান লিটন, সমবায় অফিসার এম ছালাহ উদ্দিন, মহিলা বিষয়ক কর্মকর্তা উম্মে সালমা আক্তার, প্রকল্প বাস্তবায়ন কর্মকর্তা ইশতিয়াক আহমেদ, সমাজসেবা অফিসার মেহেদী হাসানসহ উপজেলা পরিষদের বিভিন্ন দপ্তরের কর্মকর্তাবৃন্দ।

হবিগঞ্জে সুবিধাভোগীদের হাতে ভাতার কার্ড প্রদান

 হবিগঞ্জে সুবিধাভোগীদের হাতে ভাতার কার্ড প্রদান


লিটন পাঠান, হবিগঞ্জ জেলা প্রতিনিধিঃহবিগঞ্জ জেলায় নতুন করে আরো ৫৫৭ জনকে সরকারি ভাতাভোগীর তালিকায় যুক্ত করেছে শহর সমাজসেবা কার্যালয়। এই নিয়ে জেলা শহরটিতে মোট ভাতাভোগীর সংখ্যা হল ২৯৪৪ জন।

আজ বৃহস্পতিবার ( ২০-আগষ্ট ) দুপুরে হবিগঞ্জের পৌরসভার মাঠে আয়োজিত এক অনুষ্ঠানে নতুন সুবিধাভোগীদের হাতে ভাতার কার্ড তুলে দেন হবিগঞ্জ-৩ আসনের এমপি ও জেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি অ্যাডভোকেট মোঃ আবু জাহির।


উক্ত অনুষ্ঠানের সভাপতিত্ব করেন জেলা সমাজসেবা কার্যালয়ের উপ পরিচালক হাবিবুর রহমান এবং বিশেষ অতিথি হিসেবে ছিলেন হবিগঞ্জ পৌরসভার মেয়র মোঃ মিজানুর রহমান।

নতুন ৫৫৭ ভাতাভোগীর মধ্যে রয়েছেন ৫৪ জন স্বামী নিগৃহীতা, ১২১ জন বয়স্ক, ২৪০ জন অস্বচ্ছল প্রতিবন্ধী ও মৃত ব্যক্তির জায়গায় স্থলাভিষিক্ত ১৩৯ জন।


শহর সমাজসেবা কর্মকর্তা মোঃ আশরাফ আলী তাপস জানান, জেলা শহরে সর্বমোট ভাতাভোগীর সংখ্যা ২৯৪৪ জন। এর মধ্যে রয়েছেন ১৬০৭ জন বয়স্ক, ৯৯৩ জন অস্বচ্ছল প্রতিবন্ধী ও ৩৯৪ জন স্বামী নিগৃহীতা। স্বামী নিগৃহীতারা পান প্রতি বছরে ৬ হাজার, প্রতিবন্ধী ৭ হাজার ৫০০ এবং বয়স্করা পান ৬ হাজার করে টাকা।


কার্ড বিতরণী অনুষ্ঠানে আরো বক্তব্য রাখেন হবিগঞ্জ পৌরসভার কাউন্সিলর মোঃ জাহির মিয়া, মোঃ আলমগীর গৌতম কুমার রায় শেখ নূর হোসেন আব্দুল হাসিম, আব্দুল আউয়াল মজনু অর্পনা বালা পাল প্রমুখ। অনুষ্ঠানের শুরুতেই জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানসহ ১৫ আগস্ট শহীদগণের আত্মার মাগফিরাত কামনায় দাঁড়িয়ে এক মিনিট নিরবতা পালন করা হয়।

ঝিনাইদহ জেলা প্রশাসক এর উদ্দগে জনসচেতন মূলক কর্যক্রম

 ঝিনাইদহ জেলা প্রশাসক এর উদ্দগে জনসচেতন মূলক কর্যক্রম







সম্রাট হোসেন,  ঝিনাইদহ জেলা প্রতিনিধিঃঝিনাইদহ জেলা প্রশাসক জনাব সরোজ কুমার নাথ এর জনসচেতনতা মুলক মাইকিং 

স্বাস্থ্য বিধি মেনে চলতে সকলের প্রতি আহ্বান  জানান বৃহস্পতিবার ২০ আগষ্ট সকালে। 

করোনা ভাইরাস প্রতিরোধ

জেলা প্রশাসক জনাব সরোজ কুমার নাথ শহরে মাইকিং করা সহ শহরের রাস্তায় রাস্তায় ঘুরে মানুষের প্রতি আহ্বান জানাচ্ছেন করোনা ভাইরাস থেকে মানুষকে বাঁচানোর জন্য । স্বাস্থ্য বিধি মানাতে তিনি প্রতিদিন নিজেই নামছেন অভিযানে। অসংখ্য ধন্যবাদ ও অভিনন্দন জেলা প্রশাসক মহোদয়কে

আশাশুনি উপজেলা পরিষদের মাসিক সভা

 আশাশুনি উপজেলা পরিষদের মাসিক সভা




আহসান উল্লাহ বাবলু উপজেলা প্রতিনিধিঃ আশাশুনি উপজেলা পরিষদের মাসিক সভা অনুষ্ঠিত হয়েছে। বৃহস্পতিবার সকালে উপজেলা পরিষদ মিলনায়তনে উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান ও উপজেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি এ বি এম মোস্তাকিম এর সভাপতিত্বে এ সভা অনুষ্ঠিত হয়।সভায় উপস্থিত ছিলেন ও বক্তব্য রাখেন উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা মীর আলিফ রেজা,  ভাইস চেয়ারম্যান অসীম বরণ চক্রবর্তী, স্বাস্থ্য ও পঃ পঃ কর্মকর্তা ডাঃ সুদেষ্ণা সরকার, কৃষি কর্মকর্তা রাজিবুল হাসান, পল্লী বিদ্যুতের ডিজিএম নৃপেন্দ্র কুমার, আরডিও বিশ্বজিৎ ঘোষ, পরিবার পরিকল্পনা কর্মকর্তা জাহাঙ্গীর আলম, যুব উন্নয়ন কর্মকর্তা আজিজুল হক, ইউপি চেয়ারম্যান ইঞ্জিঃ আবম মোসাদ্দেক, আবু হেনা সাকিল, স ম সেলিম রেজা মিলন,প্রভাষক মোনায়েম হোসেন, দীপঙ্কর কুমার সরকার দীপ, আব্দুল আলিম, আব্দুল বাসেত আল-হারুন প্রমুখ। সভায় ঘূর্ণিঝড় আম্ফানে ক্ষতিগ্রস্ত প্রতাপনগর,শ্রীউলা ও আশাশুনি সদর ইউনিয়নের মানুষের স্বাভাবিক জীবন যাত্রা ফিরিয়ে আনতে ভাঙ্গনকবলিত ওয়াপদা বেড়িবাধ দ্রুত মেরামতের জন্য জেলা প্রশাসক ও বিভাগীয় কমিশনারের সাথে মতবিনিমের সিদ্ধান্ত গৃহীত হয়

জাতীয় শোক দিবস উপলক্ষে ঝিকরগাছায় দোয়া ও আলোচনা

জাতীয় শোক দিবস উপলক্ষে ঝিকরগাছায় দোয়া ও আলোচনা




মোঃ ইকরামুল করিম সৈকত, ঝিকরগাছা (যশোর) প্রতিনিধিঃবাঙালি জাতির জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের ৪৫ তম শাহাদাৎ বার্ষিকী ও জাতীয় শোক দিবস উপলক্ষে ২০আগস্ট বৃহস্প‌তিবার ‌বিকা‌লে ঝিকরগাছার নির্বাস‌খোলা ইউ‌নিয়‌নের ৮ নং ওয়ার্ড আওয়ামীলীগ এর উদ্যোগে স্থানীয় বল্লা প্রাথ‌মিক বিদ্যালয় প্রাঙ্গ‌নে আ‌লোচনা সভা ও দোয়া মাহ‌ফি‌লের আ‌য়োজন করা হয়। নির্বাস‌খোলা ইউ‌নিয়‌ন  আওয়ামীলীগ নেতা গোলাম মোস্তফার সভাপ‌তি‌ত্বে অনু‌ষ্ঠিত সভায় প্রধান অ‌তি‌থি হিসা‌বে উপ‌স্থিত ছি‌লেন, ঝিকরগাছা উপ‌জেলা প‌রিষ‌দের চেয়ারম্যান ও উপ‌জেলা আওয়ামীলী‌গের যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক ম‌নিরুল ইসলাম। 

        

বি‌শেষ অ‌তি‌থি হিসা‌বে উপ‌স্থিত ছি‌লেন, য‌শোর জেলা আওয়ামীলী‌গের সহ সভাপ‌তি আজাহার আলী, উপ‌জেলা যুবলীগ নেতা সাজ্জাদুল আলম, উপ‌জেলা ছাত্রলী‌গের সা‌বেক সভাপ‌তি ও যুবলী‌গ নেতা র‌ফিকুল ইসলাম বাপ্পী, সা‌বেক সাধারন সম্পাদক ও যুবলীগ নেতা শামীম রেজা, ঝিকরগাছা উপ‌জেলা প‌রিষ‌দের ভাইস চেয়ারম্যান ও যুবলীগ নেতা সে‌লিম রেজা, ম‌হিলা ভাইস চেয়ারম্যান লুবনা তাক্ষী, ঝিকরগাছা প্রেসক্লা‌বের সাধারন সম্পাদক ইমরান রশীদ ও উপ‌জেলা যুবলীগ নেতা জুল‌ফিকার আলী ভু‌ট্টো।

    আরো অ‌তি‌থি হিসা‌বে উপ‌স্থিত ছি‌লেন , ঝিকরগাছা ইউ‌নিয়ন আওয়ামীলী‌গের যুগ্ম সম্পাদক খাইরুল হুদা রা‌সেল,  উপ‌জেলা যুবলীগ নেতা শা‌হেদুর রহমান শিপলু, আ‌রিফুজ্জামান ছন্টু, প্রিন্স আহ‌মেদ, বাদশা , ইব্রা‌হিম হো‌সেন, রকি, ছাত্রলীগ নেতা ত‌রিকুল ইসলাম, ইকরামুল ক‌রিম সৈকত, আ‌রিফ হো‌সেন, র‌নি হো‌সেন, রাজ, মিঠ‌ু, সোহেল, শাকিল,  নির্বাস‌খোলা ইউ‌নিয়ন আওয়ামীলীগ নেতা সা‌বেক মেম্বর আব্দুস সাত্তার, র‌ফিকুল ইসলাম, মেম্বর লিয়াকত হো‌সেন, শ‌ফিউ‌দ্দিন, মাষ্টার মকবুল হো‌সেন, ইব্রা‌হিম হো‌সেন, ম‌ফিুজুর রহমান, সিরাজুল ইসলাম, নজরুল ইসলাম, ইউ‌নিয়ন যুবলীগ নেতা ফি‌রোজ হো‌সেন , ম‌নিরুল ইসলাম ম‌নি, ফয়সাল হো‌সেন প্রমূখ।

নামে সোনার দোকান, নেপথ্যে সুদ আর চোরাই স্বর্ণের কারবার

 নামে সোনার দোকান, নেপথ্যে সুদ আর চোরাই স্বর্ণের কারবার


মোংলা (বাগেরহাট) প্রতিনিধিঃচোখ ধাঁধানো ডেকারেশন। সবাই জানে জুয়েলার্স দোকান। অথচ দোকানের এই ঝলকানীর পিছনে চলছে চোরাই স্বর্ণ ক্রয়-বিক্রয়, চড়া সুদে জমজমাট স্বর্ণ বন্ধকীর ব্যবসা। নীতিমালা নেই, বৈধতা নিয়েও রয়েছে নানা প্রশ্ন, এতে অনেকেই হচ্ছেন প্রতারিত।


মোংলা পৌর শহরের ঠাকুরানী খালের ব্রীজ থেকে মাদ্রাসা রোডে প্রবেশ করতেই রাস্তার দুই পাশ রয়েছে অনেকগুলো জুয়েলার্স প্রতিষ্ঠান। এরমধ্যে কয়েকটি দোকানীর বিরুদ্ধে রয়েছে এমন নানা অভিযোগ। ওইসব দোকানগুলোতে জুয়েলার্সএর সাইন বোর্ড থাকলেও কোন কোন দোকানে নেই কোন সোনা। মুলত স্বর্ণের দোকানের সাইন বোর্ড দিয়ে কয়েকটি দোকানী সুযোগ বুঝে চোরাই স্বর্ণ ক্রয়-বিক্রয় আর চড়া সুদে টাকা লাগানোর কাজ করে যাচ্ছেন। বিপদের মুহুর্তে কেউ কেউ ওইসব দোকোনে স্বর্ণ বন্ধক রাখলে নিদির্ষ্ট সময়ের মধ্যে টাকা পরিশোধ করতে ব্যর্থ হলে ফেরত দেয়া হয়না তাদের বন্ধকী সোনা। আবার কারো কারো সাথে রয়েছে চোরাই গ্রুপের কানেকশন। অর্ধেক মুল্যে চোরাই সোনা কিনে তারা দিনে রাতে বনে যান লাখ লাখ টাকার মালিক। মোংলার দিগরাজ এলাকার বাসিন্দা নুরুল হকের বাড়ী থেকে খোয়া যাওয়া স্বর্ণ কেনার দায়ে গেল বুধবার থানায় অভিযোগ দেয়া হয় ‘মা কল্পনা জুয়েলার্সএর মালিক সুজন চন্দের নামে। পরে পুলিশের সহায়তায় দুইপক্ষের সমঝোতায় সুজন চন্দ এক ভরি দুই আনা ওজনের ওই স্বর্ণ ফেরত দেন। এই রকম চোরাই স্বর্ণ কেনাসহ সুদে টাকা লাগানোর একাধিক অভিযোগ রয়েছে তার বিরুদ্ধে। স্থানীয় এক বাসিন্দা নাম প্রকাশ না করা শর্তে বলেন, তিনি খুব সমস্যায় পড়ে স্বর্ণ বন্ধক রেখে কিছু টাকা নেন। তিন মাসের মধ্যে ওই টাকা সুদ সমেত ফেরত দেয়ার কথা থাকলেও তিনি নিদির্ষ্ট সময়ে টাকা পরিশোধ করতে পারেননি। পরে মা কল্পনা জুয়েলার্সের মালিক সুজন চন্দ ও তার বাবা বৈদ্যনাথ চন্দ তার বন্ধকী সোনা ফেরত দেননি। 


চোরাই স্বর্ণ কেনা আর সুদের ব্যবসার কোন অনুমোদন আছে কিনা এমন সব বিষয়ে জানতে চাইলে সুজন চন্দ বলেন, নিয়ম তো নেই তারপরও কিনেছি, অনেকেই তো কিনেন।    


তবে মোংলা থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা মো: ইকবাল বাহার চৌধুরী বলেন, এমন কিছু কিছু অভিযোগ তারা পেয়েছেন। তবে ক্যাশমেমো কিংবা বৈধ কাগজপত্র এবং নির্ভরযোগ্য ব্যক্তি ছাড়া এভাবে স্বর্ণ কেনা তো সম্পূর্ণ বেআইনি। যারা এমন কাজ করছে তাদের বিরুদ্ধে আইনানুগ ব্যবস্থা নেয়া হবে বলেও জানান তিনি। তিনি আরো বলেন, শীঘ্র্ই সকল জুয়েলার্স দোকানীকে ডেকে তাদের ওইসব নিয়ম বর্হিভূত বেচা-কেনা আর সুদের কারবার বন্ধে কঠোর নির্দেশ দেয়া হবে। #

ঝিনাইদহে ছাত্রলীগের দু’পক্ষের সংঘর্ষ, আহত-৫

ঝিনাইদহে ছাত্রলীগের দু’পক্ষের সংঘর্ষ,  আহত-৫







খোন্দকার আব্দুল্লাহ বাশার, খুলনা ব্যুরো প্রধানঃঝিনাইদহে ছাত্রলীগের দু’পক্ষের মধ্যে ধাওয়া পাল্টা ধাওয়া ও সংঘর্ষের ঘটনা ঘটেছে। এতে অন্তত ৫ জন আহত হয়েছে। এ সময় একটি মোটর সাইকেল ভাংচুরের ঘটনা ঘটেছে।

পুলিশ জানায়, বাংলাদেশ পরিবেশ আইনবিদ সমিতি (বেলা)’র আয়োজনে বৃহস্পতিবার সকালে শহরের মকবুল হোসেন প্লাজার তৃতীয় তলায় ফুড সাফারী রেস্টুরেন্টে বাংলাদেশ পরিবেশ আইনবিদ সমিতি (বেলা)’র আয়োজনে কমিউনিটি পরামর্শ সভা চলছিল। সভায় ঝিনাইদহ শিশু পার্ক সংরক্ষণে আদালতের আদেশ এবং মামলা পরবর্তী পরিস্থিতি পর্যালোচনা করা হয়। এক পর্যায়ে সভার বিষয় নিয়ে ছাত্রলীগের দু’পক্ষের মধ্যে বাক-বিতন্ডা হয়। পরে ছাত্রলীগের দু’পক্ষ শহরের এইচ এস এস সড়কে সংষর্ঘে জড়িয়ে পড়ে। চলে ধাওয়া পাল্টা ধাওয়া। এতে দু’গ্রুপের অন্তত ৫ জন আহত হয়। খবর পেয়ে পুলিশ ঘটনাস্থলে পৌঁছে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রনে আনে। এদিকে এ ঘটনাকে কেন্দ্র করে শহরে উত্তেজনা চলছে। পরিস্থিতি স্বাভাবিক রাখতে পুলিশ মোতায়েন করা হয়েছে।

দিনাজপুরে স্বেচ্ছাসেবক দলের প্রতিষ্ঠাবার্ষিকী উপলক্ষে আলোচনা সভা ও দোয়া মাহফিল অনুষ্ঠিত

দিনাজপুরে স্বেচ্ছাসেবক দলের প্রতিষ্ঠাবার্ষিকী উপলক্ষে আলোচনা সভা ও দোয়া মাহফিল অনুষ্ঠিত




মামুনুর রশিদ,দিনাজপুর প্রতিনিধি ॥ দিনাজপুরে জাতীয়তাবাদী স্বেচ্ছাসেবক দলের ৪০তম প্রতিষ্ঠাবার্ষিকী পালিত হয়েছে। এ উপলক্ষে আলোচনা সভা ও দোয়া মাহফিল অনুষ্ঠিত হয়েছে। 

বুধবার (১৯ আগষ্ট) বাদ আসর জেল রোডস্থ জেলা বিএনপির কার্যালয়ে অনুষ্ঠিত আলোচনা সভা ও দোয়া মাহফিলে সভাপতিত্ব করেন জেলা স্বেচ্ছাসেবক দল দিনাজপুর জেলা শাখার সভাপতি মো. মজিবর রহমান মজিব। অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথির বক্তব্য রাখেন বিএনপি’র কেন্দ্রীয় কমিটির সহ-সাংগঠনিক সম্পাদক (রংপুর বিভাগ) ও দিনাজপুর পৌরসভার মেয়র সৈয়দ জাহাঙ্গীর আলম। প্রধান বক্তা হিসেবে বক্তব্য রাখেন বিএনপি কেন্দ্রীয় নির্বাহী কমিটির সদস্য ও জেলা বিএনপির ভারপ্রাপ্ত আহবায়ক আলহাজ্ব রেজিনা ইসলাম। বিশেষ অতিথির বক্তব্য রাখেন জেলা বিএনপির যুগ্ম আহবায়ক আলহাজ্ব মাহবুব আহম্মেদ, মো. মোকাররম হোসেন, আখতারুজ্জামান জুয়েল, মোস্তফা কামাল মিলন, বখতিয়ার আহম্মেদ কচি। 

জেলা স্বেচ্ছাসেবক দলের সাধারণ সম্পাদক মো. রাসেল আলী চৌধরী লিমন’র সঞ্চালনায় অনুষ্ঠানে অন্যান্যের মধ্যে বক্তব্য রাখেন জেলা মুক্তিযোদ্ধা দল নেতা অধ্যাপক মোঃ কামরুজ্জামান, দিনাজপুর পৌর বিএনপির সাবেক সভাপতি আলহাজ্ব সোলায়মান মোল্লা, সাবেক ভারপ্রাপ্ত সাধারণ সমম্পাদক সামসুজ্জামান চৌধুরী খোকা, জেলা বিএনপির সাবেক যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক শাহিন খান, জেলা ছাত্রদলের সভাপতি মো. রেজাউর রহমান রেজা, সাধারণ সম্পাদক আবুজার সেতু। অনুষ্ঠানে জেলা যুবদলের সহ-সভাপতি শামিম খান, জেলা স্বেচ্ছাসেবক দলের সিনিয়র সহ-সভাপতি ওয়ালি উল্লাহ চৌধুরী রুপম, সহ-সভাপতি নুরুল হুদা মুকুল, বিপ্লব নাগ জয়, নওশাদ আলম পাপ্পু, যুগ্ম সম্পাদক আবু সাঈদ,  আব্দুস সালাম, সাইফুল ইসলাম মানিক, সাংগঠনিক সম্পাদক সাইফুল আজম সোহেল, পৌর স্বেচ্ছাসেবক দলের যুগ্ম আহবায়ক লতিফুল ইসলাম লিপন, আব্দুর রশীদ, জেলা স্বেচ্ছাসেবক দলের সদস্য শাওন শাহ ডাবলু, সাইফুল, মুক্তা, খাদেমুল ইসলাম সোহাগ, হেলাল, রাজু মুন্সি, মিলন, মোহন. বড়কা, মন্টি, সাদ্দাম, শামিম, মানিক, কুদ্দুস, রেজাউল, শফিকুল ইসলামসহ স্বেচ্ছাসেবক দল ও বিএনপির অন্যান্য অঙ্গ-সহযোগি সংগঠনের নেতাকর্মী উপস্থিত ছিলেন। 

আলোচনা সভা শেষে দলের চেয়ারপার্সন বেগম খালেদা জিয়া’র সুস্বাস্থ্য ও দীর্ঘায়ূ কামনাসহ দেশ, জাতি ও মুসলিম উম্মাহ’র কল্যাণ কামনা করে মুনাজাত করা হয়।

নগরীর খালিশপুরে যুবককে কুপিয়ে হত্যা : আহত ২

 নগরীর খালিশপুরে যুবককে কুপিয়ে হত্যা : আহত ২




তুহিন রানা (আব্রাহাম)  খুলনা প্রতিনিধিঃনগরীর খালিশপুরে এক যুবককে ধারালো অস্ত্র দিয়ে কুপিয়ে হত্যা করেছে দুর্বৃত্তরা। বুধবার রাত ৯টার দিকে খালিশপুরের লাল হাসপাতালের সামনে এ ঘটনা ঘটে। নিহত যুবকের নাম আসিফ (২৫)। সে খালিশপুর  তৈয়বা কলোনীর হাবিবুর রহমানের ছেলে। এছাড়া জোবায়ের (২৫) ও মোঃ রানা (২৫) নামে দুই যুবক আহত হয়েছে। তারা খুলনা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে চিকিৎসাধীন রয়েছেন। হতাহতের ঘটনাটি নিশ্চিত করে খালিশপুর থানার অফিসার ইনচার্জ সাব্বিরুল আলম বলেন, পূর্ব শত্র“তার জের ধরে কয়েকজন যুবক আসিফ ও তাঁর বন্ধুদের উপর হামলা চালিয়েছে বলে প্রাথমিকভাবে জানা গেছে।

খুমেক হাসপাতাল সূত্রে জানা যায়, আসিফকে রাত সোয়া ৯টার দিকে হাসপাতালে মৃত অবস্থায় আনা হয়। তার ডান হাতের মার সেলে ২টা কোপ, ডান হাতের কনুর নিচে ও ডান পাশে গলায় কোপের চিহ্ন রয়েছে। এছাড়া বাম পাশে পিঠে ও মাথার মাঝখানে কোপের চিহ্ন ছিল।

এদিকে আহত অবস্থায় রাত সাড়ে ৯টার দিকে খালিশপুর মানষী বিল্ডিং মোড় এলাকার বাসিন্দা আলতাফের ছেলে জোবায়ের এবং ৯টা ৪৫ মিনিটে ওয়ান্ডার ল্যান্ড শিশু পার্কের মোড় এলাকার বাসিন্দা মোঃ সানোয়ারের ছেলে মোঃ রানাকে হাসপাতালে আনা হয়। এর মধ্যে জোবায়েরের মাথার সামনে মাঝখানে, ডান/ বাম হাতের কব্জির উপরে ও ডান পায়ের গোড়ালীর নিচে কোপের চিহ্ন রয়েছে। আর রানার পিঠের ডান সাইডে উপরে কোপের চিহ্ন রয়েছে।

নওগাঁর মান্দায় গাঁজা সহ মাদক ব্যাবসায়িক আটক-১

 নওগাঁর মান্দায় গাঁজা সহ মাদক ব্যাবসায়িক আটক-১




মোঃ ফিরোজ হোসাইন রাজশাহী ব্যুরো:নওগাঁর মান্দায় দুই কেজি গাঁজা সহ নেকবর আলী (৪৫) নামে একজনকে আটক করেছে জেলা গোয়েন্দা শাখা পুলিশ ডিবি। আটক নেকবর মান্দা উপজেলার হার কিশোর গ্রামের মৃত দশরত আলী মোল্লার ছেলে।


ডিবি পুলিশ সূত্রে জানা গেছে, বুধবার রাত সাড়ে ১০ টার দিকে ওসি ডিবি কে এম শামসুদ্দিনের নেতৃত্বে এসআই সোহেল রানা, এএসআই মোঃ ফেরদৌস আলী ও এএসআই মেহেদী হাসান সঙ্গীয় ফোর্সসহ গোপন সংবাদের ভিত্তিতে মাদক বিরোধী অভিযান চালিয়ে জেলার মান্দা থানাধীন ভাঁরশো ইউপির হার কিশোর গ্রামে হতে তাকে আটক করা হয়। এসময় তার কাছে থেকে নিষিদ্ধ মাদকদ্রব্য ২ কেজি গাঁজা উদ্ধার করা হয়।

ডিবির এএসআই ফেরদৌস আলী এসব তথ্য নিশ্চিত করে জানান, এবিষয়ে মান্দা থানায় তার বিরুদ্ধে মাদকদ্রব্য নিয়ন্ত্রণ আইনে মামলা দায়ের করা হয়েছে।

পৌর শিশু পার্ক সংরক্ষণে ঝিনাইদহে কমিউনিটি পরামর্শ সভা

 পৌর শিশু পার্ক সংরক্ষণে ঝিনাইদহে কমিউনিটি পরামর্শ সভা



খোন্দকার আব্দুল্লাহ বাশার, খুলনা ব্যুরো প্রধান:ঝিনাইদহ শিশু পার্ক সংরক্ষণে আদালতের আদেশ এবং মামলা পরবর্তী পরিস্থিতি পর্যালোচনা বিষয়ক কমিউনিটি পরামর্শ সভা অনুষ্ঠিত হয়েছে। বৃহস্পতিবার বেলা ১২ টায় শহরের মকবুল হোসেন প্লাজায় ফুড সাফারী মিলনায়তনে এ কমিউনিটি পরামর্শ সভা অনুষ্ঠিত হয়। 


পরামর্শ সভায় বক্তারা বলেন, ঐতিহ্যবাহী ঝিনাইদহ পৌর শিশু পার্ক ভেঙ্গে বহুতল ভবন নির্মান কাজ শুরু হয়েছে। দ্রুত নির্মিত ভবনের কাজ বন্ধ করে সেখানে শিশু পার্ক পূনরুদ্ধার করার দাবী জানান তারা।


অনুষ্ঠানের আয়োজন করে বাংলাদেশ পরিবেশ আইনবিদ সমিতি (বেলা)। 


বাংলাদেশ পরিবেশ আন্দোলন কমিটি (বাপা) ঝিনাইদহ জেলা শাখার আহবায়ক খন্দকার হাফিজ ফারুকের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠানে উপস্থিত ছিলেন, বেলা’র খুলনা বিভাগীয় সমন্বয়কারী মাহফুজুর রহমান মুকুল, রাজশাহী বিভাগীয় সমন্বয়কারী তন্ময় সান্যাল, ঝিনাইদহ পৌর আওয়ামী লীগের সভাপতি বাবু জীবন কুমার বিশ্বাস, প্রবীণ আওয়ামীলীগ নেতা মাহমুদুর রহমান ফোটন সহ প্রমুখ।

রাঙ্গাবালীতে রাস্তার বেহাল দশা, ভোগান্তিতে ৩০ হাজার মানুষ

রাঙ্গাবালীতে রাস্তার বেহাল দশা, ভোগান্তিতে ৩০ হাজার মানুষ


তুহিন আহমেদ রাঙ্গাবালী (পটুয়াখালী) প্রতিনিধিঃ পটুয়াখালীর রাঙ্গাবালী উপজেলার বড়বাইশদিয়া ইউনিয়ন এর প্রধান সড়কটি বেহাল দশায় পরিনত হয়েছে। দীর্ঘদিন ধরে কোনো ব্যবস্থা না নেয়ায় বর্ষার শুরুতেই চলাচল অনুপযোগী হয়ে পড়ছে। এ অবস্থায় ভোগান্তিতে পড়ছে ইউনিয়নের প্রায় ৩০ হাজার মানুষ। স্থানীয় সূত্রে জানাযায়, বড়বাইশদিয়া ইউনিয়নের তক্তাবুনিয়া বাজার থেকে কাটাখালী হয়ে ফেলাবুনিয়া পর্যন্ত রাস্তাটি খানাখন্দ আর বর্ষার মৌসুমে চলাচল অনুপযোগী। এই রাস্তাটি দিয়ে বড়বাইশদিয়া মাহবুবুর রহমান কলেজ, ২টি মাধ্যমিক বিদ্যালয়, ৫টি প্রাথমিক বিদ্যালয়, ২ টি মাদ্রাসার শিক্ষার্থীসহ প্রায় ৩০ হাজার মানুষ চলাচল করে। ইউনিয়ন পরিষদ ও ইউনিয়ন ভূমি অফিস এ আসতেও পড়তে হয় চরম ভোগান্তিতে। রাস্তার এই বেহাল দশায় হাজারো মানুষের ভোগান্তি থাকা সত্ত্বেও রাস্তাটি পাঁকা করনের জন্য নেয়া হয়নি কোনো উদ্যোগ।রাস্তাটির বেহাল দশার কারণে আরো বেশি বিপাকে রয়েছেন ব্যবসায়ীরা। কৃষি জমি থেকে উৎপাদিত ফসল পরিবহনে ভোগান্তির কোনো শেষ নেই। একটু বৃষ্টি হলেই রাস্তাটির বেহাল দশার কারনে রোগী, আইন শৃঙ্খলা বাহিনিসহ সাধারনের যাতায়াতে চরম দুর্ভোগে পড়তে হচ্ছে।সরেজমিনে গিয়ে দেখা যায়, রাস্তাটিতে বর্ষার পানি জমে খানাখন্দ একেবারে সয়লাব। বড়বাইশদিয়া ইউনিয়ন এর চিত্র শিল্পী শাহ আলম বলেন, রাস্তাটির বেহাল দশার কারণে চলাচলে আমাদের ভোগান্তিতে পড়তে হচ্ছে। ১০ মিনিটের রাস্তা যেতে আমাদের আধা ঘণ্টা সময় লাগে।কোনো কোনো সময় খানাখন্দের কারণে পড়তে হয় দুর্ঘটনায়। এ বিষয়ে বড়বাইশদিয়া ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান আবু হাসনাত আবদুল্লাহ মুঠো ফোনে বলেন, রাস্তাটির টেন্ডার হয়েছে। উপজেলা পরিষদের বিভিন্ন মিটিংয়ে আলোচনা করেও কোনো সমাধান করা হয়নি।জানতে চাইলে উপজেলা পরিষদ চেয়ারম্যান ডাঃ জহির উদ্দিন আহমেদ বলেন, রাস্তাটি জনগণের চলাচলের অনুপযোগী। উপজেলা এলজিইডি অফিসে আলোচনা করে খুব শীগ্রই রাস্তা পাকাকরণের ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে।

সিরাজগঞ্জে জাতীয শোক দিবসের অনুষ্ঠান করতে না দেওয়ায় সংবাদ সন্মেলন

 সিরাজগঞ্জে জাতীয শোক দিবসের  অনুষ্ঠান করতে না দেওয়ায়  সংবাদ সন্মেলন




মাসুদ রানা সিরাজগঞ্জ জেলাপ্রতিনিধিঃ সিরাজগঞ্জের বেলকুচির বানিয়াগাঁতী এস,এন একাডেমী স্কুল এন্ড কলেজে জাতীর জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের ৪৫ তম শাহাদত বার্ষিকীতে জাতীয় শোক দিবসের অনুষ্ঠান ভন্ডুল,বাঁধা প্রদান ও শিক্ষকদের লঞ্ছিত করার প্রতিবাদে সংবাদ সন্মেলন অনুষ্ঠিত হয়েছে।


বৃহস্পতিবার দুপুরে সিরাজগঞ্জ প্রেসক্লাবে সংবাদ সন্মেলনে লিখিত বক্তব্যে প্রতিষ্ঠানের অধ্যক্ষ খোন্দকার নজরুল ইসলাম বলেন, সারা দেশের বিভিন্ন শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের মত বানিয়াগাঁতী এস,এন একাডেমী স্কুল এন্ড কলেজে জাতীয় শোক দিবস পালনের নানা কর্মসূচী গ্রহন করা হয়। কিন্তু গত ১৫ আগষ্ট সকাল থেকে এলাকার কিছু স্বাধীনতা বিরোধী চক্র উদ্দেশ্য প্রনোদিত ভাবে কর্মসূচীতে বাঁধা প্রদান করে এবং শিক্ষকদের লাঞ্ছিত করে। ফলে অনুষ্ঠান ভন্ডুল হয়ে যায়।


এবিষয়ে প্রশাসনকে অভিযোগ করলেও এখনো পর্যন্ত কোন ব্যাবস্থা গ্রহন না করায় শিক্ষক ও ছাত্র-ছাত্রীদের মধ্যে ক্ষোভ বিরাজ করছে। সংবাদ সন্মেলনে এ ঘটনার সাথে জড়িতদের দ্রুত গ্রেফতার করে দৃষ্টান্তমুলক শাস্তির দাবী জানানো হয়। সংবাদ সন্মেলনে প্রতিষ্ঠানের সভাপতি,ঢাকার বনানী থানা আওয়ামীলীগের সাধারন সম্পাদক মোশারফ হোসেন সহ পরিচালনা পরিষদের সদস্য ও শিক্ষকবৃন্দ উপস্থিত ছিলেন।

সাতক্ষীরায় করোনার উপসর্গে মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে তিন নারীর মৃত্যু

সাতক্ষীরায় করোনার উপসর্গে মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে  তিন নারীর মৃত্যু


আজহারুল ইসলাম সাদী, জেলা প্রতিনিধিঃকরোনার উপসর্গ নিয়ে সাতক্ষীরা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে তিন নারীর মৃত্যু হয়েছে। 


জানা গেছে আজ (২০ আগস্ট)  বৃহষ্পতিবার সকালে মেডিকেল কলেজ হাসপাতালের আইসোলেশনে পৌনে তিন ঘন্টার ব্যবধানে এই তিন নারীর মৃত্যুর ঘটনা ঘটছে।

মৃত তিন নারীদ্বয় হলেন, সাতক্ষীরা শহরের মধ্যকাটিয়া এলাকার ঠিকাদার আব্দুর রাজ্জাক এর স্ত্রী রিনা বেগম (৪৭), কলারোয়া উপজেলার গদখালি গ্রামের আইয়ুব আলীর স্ত্রী জাহেদা খাতুন (৭০) ও শহরের বাটকেখালি এলাকার মোতাহার গাজীর স্ত্রী রিজিয়া খাতুন (৬৫)।

মেডিকেল কলেজ হাসপাতালের তত্ত্বাবধায়ক ডাঃ রফিকুল ইসলাম জানান, জ্বর ও শ্বাসকষ্টসহ করোনার উপসর্গ নিয়ে গতকাল ১৯ আগষ্ট সাতক্ষীরা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালের আইসোলনে ভর্তি হন কলারোয়া উপজেলার গদখালি গ্রামের জাহেদা খাতুন। সেখানে চিকিৎসাধীন অবস্থায় বৃহষ্পতিবার সকাল ৬টার দিকে তিনি মারা যান।

এদিকে, শ্বাসকষ্ট ও নিমোনিয়া নিয়ে একই দিন মেডিকেল কলেজ হাসপাতালের আইসোলেশনে ভর্তি হন সাতক্ষীরা শহরের কাটিয়া আমতলার রিনা খাতুন। বৃহষ্পতিবার সকাল সাড়ে ৬টায় সেখানে চিকিৎসাধীন অবস্থায় তিনিও মারা যান।

অপরদিকে, জ্বর ও শ্বাসকষ্ট নিয়ে সাতক্ষীরা শহরের বাটকেখালি এলাকার রিজিয়া খাতুনও গতকাল মেডিকেল কলেজ হাসপাতালের আইসোলেশনে ভর্তি হন। বৃহষ্পতিবার ভোরে পৌনে ৪ টার দিকে তিনিও মারা যান। মৃত তিন জনেরই নমুনা সংগ্রহ করে পিসিআর ল্যাবে পাঠানো হয়েছে। এখনও তাদের রিপোর্ট পাওয়া যায়নি।

মেডিকেল তত্ত্বাবধায়ক ডাঃ রফিকুল ইসলাম আরো জানান, স্বাস্থ্য বিধি মেনে তাদের লাশ দাফনের অনুমতি দেওয়া হয়েছে। একই সাথে লকডাউন করা হয়েছে তাদের বাড়ি।

এনিয়ে, সাতক্ষীরায় করেনার উপসর্গে আজ পর্যন্ত মারা গেছেন অন্ততঃ ৭২ জন। আর করোনা আক্রান্ত হয়ে মারা গেছেন আরো ২৬ জন।

রাঙ্গাবালীতে মোটরসাইকেল সমিতি ও যুব সমাজের উদ্যোগে রাস্তা সংস্কার

রাঙ্গাবালীতে মোটরসাইকেল সমিতি ও যুব সমাজের উদ্যোগে রাস্তা সংস্কার


তুহিন আহমেদ রাঙ্গাবালী প্রতিনিধিঃ পটুয়াখালী জেলার রাঙ্গাবালী উপজেলার চরমোন্তাজ ইউনিয়ন এর সংযোগ সড়ক এর প্রায় তিন কিলোমিটার দীর্ঘ অর্ধ পাকা রাস্তার বিভিন্ন স্থান ভাঙ্গা বৃষ্টি হলেই ভাঙ্গা অংশ কাদা-পানিতে একাকার হয়ে যায়। ফলে এই রাস্তা দিয়ে চলাচল করতে গিয়ে দুর্ভোগ ও দুর্ঘটনার শিকার হতে হয় প্রায় দুই হাজারেরও বেশি ’ পরিবারের মানুষকে।

 দুর্ভোগ দূর করার জন্য গ্রামবাসী, জনপ্রতিনিধিদের কাছে কয়েকবার গিয়েছিলেন। বিভিন্ন পেপার-পত্রিকায় এ নিয়ে একাধিকবার লেখালেখি করা হয়েছে, কিন্তু তাতে কোনও লাভ হয়নি। তাই নিজেদের সমস্যা সমাধানে নিজেরাই এগিয়ে এলেন। নেমে পড়লেন রাস্তা সংস্কারের কাজে।

চরমোন্তাজ ইউনিয়নের  (৪,৫,৭ ও ৮নংওয়ার্ড) গ্রামের যুবকেরা স্বেচ্ছাশ্রমে চরমোন্তাজ (পুরান বাজার) সরকারী প্রথমিক বিদ্যালয় থেকে লঞ্চ ঘাট পর্যন্ত প্রায় তিন কিলোমিটার রাস্তা সংস্কারের কাজ করতেছেন। ইতোমধ্যে এ রাস্তার ৭০ শতাংশ কাজ শেষ হয়ে গেছে। বাকি কাজ আগামী দু এক  দিনের মধ্যেই শেষ হবে।

এসকল বিষয়ে চরমোন্তাজ ইউনিয়ন আওয়ামী যুবলীগের যুগ্ন আহবায়ক মোঃ জাহাঙ্গীর হোসেন বলেন , ‘রাস্তাটির সংস্কারে প্রায় দুই থেকে আড়াই লাখ টাকার দরকার ছিল । কিন্ত সরকারি বরাদ্দ না পাওয়ায় এলাকার যুব সমাজ স্বেচ্ছাশ্রমে কাজটি শুরু করেন। ছোট বড় দুর্ঘটনা এখানকার মানুষের নিত্যদিনের সঙ্গী, কয়েক দিন আগে বাদশা মিয়া নামে এক অসহায় মোটরসাইকেল ড্রাইভার এই সড়কে দুর্ঘটনার শিকার হয়ে বর্তমানে বরিশাল মেডিকেলে চিকিৎসাধীন অবস্থায় আছেন,তার অবস্থা আশংকা জনক।

তাই মোটরসাইকেল ড্রাইভাররা সর্বপ্রথম এ কাজটির উদ্যোগ নিয়েছে । কাজটি বর্তমানে চলমান।

চরমোন্তাজ ইউনিয়ন আওয়ামী লীগে কর্মী ও এবং সংসদ সদস্যের প্রতিনিধি  মোঃ মনির প্যাদা বলেন, ‘এখানে প্রায় দুহাজারের অধিক’ পরিবার দীর্ঘদিন থেকে ওই ভাঙা রাস্তা দিয়ে বর্ষায় কাদাপানি পেরিয়ে চরমোন্তাজ সুলিজ বাজারে নিত্য প্রয়োজনীয় জিনিস পত্র নিতে  যাতায়ত করেন।

সরকারি বাজেটের জন্য ইউনিয়ন পর্যায়ে অনেক চেষ্টা করেলেও আজ পর্যন্ত তা পাওয়া যায়নি। তাই এলাকার যুবসমাজ ও মোটরসাইকেল ড্রাইভার দের ব্যক্তিগত সহযোগিতা ও “হাত বাড়াও রুখে দাঁড়াও” সেচ্ছাসেবী সংগঠনের উদ্যোগে সংস্কার হচ্ছে ওই তিন কিলোমিটার রাস্তা।

“হাত বাড়াও রুখে দাড়াও” এই সেচ্ছাসেবী সংগঠন টি ইতোমধ্যে অনেক অসহায় মানুষের পাশে দাড়িয়ে এলাকাবাসীর আস্থা অর্জন করছেন এবং তাদের সেচ্ছাসেবা ইউনিয়ন এ চলমান রয়েছে

স্থানীয় মোটরসাইকেল ড্রাইভার সমিতির সভাপতি ও সাধারণ সম্পাদক বলেন প্রতিনিয়ত এ রাস্তা দিয়ে আমাদের যাতায়েত করতে হয়, আর কিছুদিন পর পরই বড় ধরনের দুর্ঘটনার শিকার হতে হয়, বিভিন্ন মহলে রাস্তাটি নিয়ে ঘোরাঘুরি করলেও তাতে আমাদের কোন লাভ হয়নি তাই আমরা মটরসাইকেল সমিতির উদ্যোগে ও “হাত বাড়াও রুখে দাঁড়াও” সংগঠনের সহায়তায় রাস্তাটি সংস্কারের সিদ্ধান্ত নিয়েছি, আমরা এই রাস্তাটি সংস্কার কাজ সম্পন্ন করব ।

মোংলায় দিগরাজ ডিগ্রি মহাবিদ্যালয়ে ৪ তলা আই সি টি ভবনের উদ্বোধন

 মোংলায় দিগরাজ ডিগ্রি মহাবিদ্যালয়ে ৪ তলা আই সি টি  ভবনের উদ্বোধন

   



মোঃএরশাদ হোসেন রনি, মোংলাঃবৃহস্পতিবার সকাল ১১ টায়  মোংলায়  দিগরাজ মহাবিদ্যালয় এ নব নির্মিত ৪ তলা আইসিটি ভবনের উদ্বোধন করা হয়।


উদ্বোধন অনুস্ঠান ও আলোচনা সভায় প্রধান অতিথি হিসাবে উপস্থিত ছিলেন খুলনা সিটি কর্পোরেশন মেয়র আলহাজ্ব তালুকদার আব্দুল খালেক।বিশেষ অতিথি হিসাবে উপস্থিত ছিলেন মোংলা উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান আবু তাহের হাওলাদার। উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা কমলেশ মজুমদার,উপজেলা সহকারী কমিশনার ভূমি নয়ন কুমার রাজবংশী, মোংলা থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা মোঃইকবাল বাহার চৌধুরী,উপজেলা মাধ্যমিক শিক্ষা অফিসার এম এ আনোয়ার কুদ্দুস, উপজেলা ভাইস চেয়ারম্যান ইকবাল হোসেন,মোংলা পৌর আওয়ামীলীগ এর সাধারন সম্পাদক আলহাজ্ব শেখ কামরুজ্জামান জসিম,  বুড়িরডাঙ্গা ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান নিখিল চন্দ্র রায়, মিঠাখালী ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান মোঃ ইস্রাফিল হাওলাদার। 


অনুষ্ঠানে সভাপতিত্ব করেন  তুষার কুমার গাইন,  অধ্যক্ষ দিগরাজ ডিগ্রি মহাবিদ্যালয়।


প্রধান অতিথি তার বক্তব্যে করনোর সময়ে সকলকে সচেতন থাকার পরামর্শ দেন। বাইরে বের হলে সবাই যেন মাস্ক ব্যাবহার করে। নিরাপদ দুরত্ব বজায় রেখে সবাই যেন চলাফেরা করে। তিনি বলেন সচেতনতাই পারে এ করোনা নামক এই মহামারীর হাত থেকে আমাদের রক্ষা করতে।সবাইকে সরকারি নির্দেশনা অনুয়ায়ী চলাফেরা করতে অনুরোধ করেন।  


আলোচনা অনুষ্ঠান এ শেষে দোয়া অনুষ্ঠিত হয়।

নারায়ণগঞ্জে মাদক সেবন ও বিক্রিতে প্রতিবাদে হামলা

 নারায়ণগঞ্জে মাদক সেবন ও বিক্রিতে প্রতিবাদে হামলা




শিপন,নারায়ণগঞ্জ প্রতিনিধিঃনারায়ণগঞ্জের সিদ্ধিরগঞ্জে ১নং ওয়ার্ডে মাদক সেবন ও বিক্রির প্রতিবাদ করায় কাইয়ুম হোসেন কামাল নামে এক ব্যক্তি ও তার পরিবারের উপর হামলার অভিযোগ পাওয়া গেছে মাদক ব্যবসায়ীদের বিরুদ্ধে। হামলায় কাইয়ুম হোসেন সহ তার স্ত্রী ও স্কুল পড়ুয়া মেয়ে আহত হয়েছে। বর্তমানে কাইয়ুম হোসেন কামাল গুরুতর অবস্থায় মেডিকেলে চিকিৎসাধীন রয়েছে।


সিআই খোলা এলাকায় উক্ত মারামারির ঘটনায় সিদ্ধিরগঞ্জ থানায় ভুক্তভুগী কাইয়ুম হোসেনের স্ত্রী অভিযোগ দায়ের করেন। তদন্তকারী কর্মকর্তা সিদ্ধিরগঞ্জ থানার উপ-পরিদর্শক (এসআই) মোঃ রফিউদ্দৌলা জানান, থানায় অভিযোগ দিয়েছে। তদন্ত সাপেক্ষে ব্যবস্থা নেওয়া হবে।


এদিকে ভুক্তভুগী কাইয়ুম হোসেন কামাল জানান, মাদক ব্যবসায় বাধা দেওয়ায় সিআই খোলা এলাকার মৃত আঃ করিম মিয়ার ছেলে, মাদক ব্যবসায়ী একাধিক মামলার আসামী ইকবাল, তারভাই কবির, ও কামরুল সহ আরো ১০/১৫ জন মিলে তার বসত ঘরে এবং পরিবারের উপর হামলা চালায়, দীর্ঘদিন এলাকায় থেকে মাদক ব্যবসা করে আসছে। এসময় মাদক ব্যবসা বন্ধ ও তার বাড়ির সামনে মাদক বিক্রয় করার প্রতিবাদ করে ওই কামালা। এতে ক্ষিপ্তহয়ে মাদক ব্যবসায়ী ইকবাল, তারভাই কবির, ও কামরুল সহ আরো আরো কয়েকজন মিলে আজে বাজে ভাষায় গালাগালি করে। এক পর্যায় কামালের উপর লাঠিসোটা দিয়ে মেরে আহত করে পালিয়ে যায় মাদক ব্যবসায়ীরা। এ ঘটনায় পরিবার নিয়ে আতঙ্কে আছেন তারা

২১শে আগস্টে গ্রেনেড হামলায় নিহত বেগম আইভি রহমান সহ সকল শহীদের প্রতি বিনম্র শ্রদ্ধাঞ্জলি

২১শে আগস্টে গ্রেনেড হামলায় নিহত বেগম আইভি রহমান সহ সকল শহীদের প্রতি বিনম্র শ্রদ্ধাঞ্জলি


২১শে আগস্টে গ্রেনেড হামলায় নিহত বেগম আইভি রহমান সহ সকল শহীদের প্রতি জানাই বিনম্র শ্রদ্ধাঞ্জলি

সভাপতি
গঙ্গানন্দপুর মাধ্যমিক বিদ্যালয় ও সাবেক চেয়ারম্যান  ১ নং গঙ্গানন্দপুর ইউনিয়ন, ঝিকরগাছা, যশোর।


জাতীয় শোক দিবস উপলক্ষে মুকতাদির হোমিও চিকিৎসা কেন্দ্রের উদ্যোগে দোয়া মাহফিল অনুষ্ঠিত

 জাতীয় শোক দিবস উপলক্ষে মুকতাদির হোমিও চিকিৎসা কেন্দ্রের উদ্যোগে দোয়া মাহফিল অনুষ্ঠিত




হাসান সাদী নাগরপুর(টাংগাইল)প্রতিনিধি: টাঙ্গাইলের নাগরপুরে মানবতার কল্যানে প্রতিষ্ঠিত মুকতাদির হোমিও চিকিৎসা কেন্দ্রের  উদ্যোগে জাতীয় শোক দিবস ও বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের ৪৫ তম শাহাদত বাষির্কী উপলক্ষে আজ বৃহস্পতিবার,২০ আগষ্ট ২০২০ খ্রি. বেলা ১২.০০ টায়  বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান সহ সকল শহীদদের  রুহের মাগফেরাত কামনা  ও করোনা আক্রান্ত হয়ে যারা মৃত্যুবরন করেছেন  তাদের মাগফেরাত কামনা করে দোয়া  মাহফিলের আয়োজন করা হয়।


 দোয়া মাহফিল পরিচালনা

 করেন ডা.মো.কাওছার খান,মেডিকেল অফিসার- মুকতাদির হোমিও চিকিৎসা কেন্দ্র.


 দোয়া মাহফিলে আরো উপস্থিত ছিলেন, প্রতিষ্ঠানের প্রতিষ্ঠাতা ব্যবস্হাপনা পরিচালক ও বিশিষ্ট চিকিৎসক ডা.এম.এ.মান্নান,মোজাম্মেল, সোনা মিয়া, মুবিন প্রমূখ

৯টি সেক্টরে ৭০% সৌদিকরণ! চাকুরী হারানোর ঝুঁকিতে অনেক প্রবাসী

৯টি সেক্টরে ৭০% সৌদিকরণ! চাকুরী হারানোর ঝুঁকিতে অনেক প্রবাসী




আন্তর্জাতিক ডেস্কঃআজ ২০ আগস্ট থেকে সৌদি আরবের আরো ৯টি সেক্টরে প্রায় ৭০ শতাংশ সৌদিকরণ করেছে সরকার। সৌদি সরকার এর ভিশন ২০৩০ বাস্তবায়ন এর লক্ষ্যে অনেকদিন ধরেই সৌদিকরণ শুরু হয়েছে সৌদি আরবের বিভিন্ন সেক্টরে, এবং এরই ফলাফল হিসেবে নতুন করে ৯টি সেক্টরে ৭০ শতাংশ সৌদিকরণ করা হয়েছে।


আজ ২০ আগস্ট, বৃহস্পতিবার সৌদি আরবে ৯টি সেক্টরে ৭০ শতাংশ সৌদিকরণ বাধ্যতামূলক করা হয়েছে। এই সেক্টরগুলো হলোঃ

শিশুদের টয়া স্টোর বা খেলনার দোকান

গিফট শপ বা এন্টিক শপ

ফল, সবজি বিক্রির দোকান

কৃষি সংক্রান্ত,  কৃষি কাজে ব্যবহৃত হয় এমন জিনিসপত্রের দোকান

কফি শপ

মাছ-মাংসের দোকান ও বিভিন্ন প্রাকৃতিক তেলের দোকান

প্লাস্টিকের জিনিসপত্র, ক্লিনিং ইকুইপমেন্ট, পরিচ্ছন্নতার কাজে ব্যবহৃত হয়  এরকম দোকান

মসলা, ঘি-মাখন ও মধু বিক্রয়ের দোকান।

লাইব্রেরী-স্টেশনারি ও শিক্ষার্থীদের পরিষেবা।


উল্লেখ্য যে, 

ইতিপূর্বে ফল ও সবজির দোকানে সৌদিকরণ করা হলেও অনেক দোকান মালিক বা ব্যবসায়ীই এই নিয়ম মানছিলেন না, তবে বর্তমানের  ২০ আগস্ট(আজকে) থেকে এসকল সেক্টরের সকল দোকানে ৭০ শতাংশ সৌদি কর্মচারী বাধ্যতামূলক করা হয়েছে। যা তদারকি করবে সরকারি সংস্থা।

গত কয়েক বছরে সৌদিকরণের ফলে সৌদি আরবের বেশিরভাগ ব্যবসায়িক সেক্টরে সৌদি নিয়োগ দেয়া হয়েছে। এতে করে, সৌদি নাগরিকদের নতুন কর্মসংস্থান তৈরি হলেও, নানাভাবে ক্ষতিগ্রস্ত হচ্ছেন ব্যবসায়ীগণ।


এই সৌদিকরণ এর ফলে অনেক দোকানেই প্রবাসী কর্মচারীদের বদলে সৌদি কর্মচারী রাখতে বাধ্য হচ্ছেন মালিকপক্ষ, ফলে অনেক প্রবাসী চাকরী হারানোর ঝুঁকিতে রয়েছেন।

নওগাঁ-৬ আসনে মনোনয়ন প্রত্যাশী আওয়ামী লীগের প্রায় ২ ডজন

 নওগাঁ-৬ আসনে  মনোনয়ন  প্রত্যাশী আওয়ামী লীগের প্রায় ২ ডজন



মোঃ ফিরোজ হোসাইন রাজশাহী ব্যুরো: নওগাঁর আত্রাই ও রাণীনগর উপজেলা নিয়ে গঠিত নওগাঁ-৬ আসন। দুই উপজেলার ১৬ টি ইউনিয়নে মোট ভোটার প্রায় ৩ লাখ ১৬ হাজার ৮ শ ৮৬ জন। গত ২৭ জুলাই এমপি ইসরাফিল আলম মারা যাওয়ায় আসনটি শুন্য হয়। উপ-নির্বাচনকে সামনে রেখে আওয়ামী লীগের প্রায় ২ডর্জন প্রার্থীর নাম শুনা যাচ্ছে। অপর দিকে কেন্দ্রের নির্দেশনার অপেক্ষায় রয়েছেনে বিএনপি। তবে কে হচ্ছেন নৌকার মাঝি তা নিয়ে জল্পনা-কল্পনায় রয়েছেন আওয়ামী লীগ ও ভোটারেরা। ইতি মধ্যেই আওয়ামী লীগের মনোনয়ন প্রত্যাশীরা মাঠে দৌড়ঝাঁপ শুরু করেছেন। এলাকার মানুষের মাঝে আলোচনার বিষয় নির্বাচন ও প্রার্থী। এ আসনটিতে বড় দু’টি রাজনৈতিক দল আওয়ামী লীগ ও বিএনপি।

বিএনপির ঘাঁটি বলে পরিচিত এ আসন ২০০৮ সালে ভোট যুদ্ধে দখলে নেয় আওয়ামী লীগ। আওয়ামী লীগ সরকার আমলের উন্নয়ন দাবি করে জয়ের ধারাবাহিকতা ধরে রাখতে চায় তারা। এক সময়ের আলোচিত বাংলা ভাইয়ের দুর্গ রক্তাত্ত জনপদ বলে পরিচিত এই দুই উপজেলা।


আওয়ামী লীগের মনোনয়ন প্রত্যাশীরা ইতিমধ্যে বিভিন্ন অনুষ্ঠানের পোস্টার ব্যানার লাগিয়ে ও কর্মীসভার মাধ্যমে নেতা-কর্মীদের সাথে কুশল বিনিময় ছাড়াও নির্বাচনী মাঠ দখলের চেষ্টা করছেন তারা।

আত্রাইয়ের ঐতিহ্যবাহী আহসানগঞ্জহাট পাট রপ্তানীর জন্য বিখ্যাত

আত্রাইয়ের ঐতিহ্যবাহী আহসানগঞ্জহাট পাট রপ্তানীর জন্য বিখ্যাত

মোঃ ফিরোজ হোসাইন রাজশাহী ব্যুরো:আলু পেঁয়াজ সবজি  মাছসহ নানান কৃষি পন্য রপ্তানীতে নওগাঁ জেলার অন্যতম উপজেলা আত্রাই এর সুনাম ও খ্যাতি যখন দেশের বিভিন্ন স্থানে ছড়িয়ে পড়েছে।সেই সাথে সোনালী আঁশ (পাট) সেই তালিকায় অন্তভুক্ত হয়েছে বহু বছর আগে। 

আত্রাইয়ের ঐতিহ্য সুনাাম আরো বৃদ্ধি করেছে পাট চাষ ও রপ্তানির জন্য । তখন ও আত্রাইয়ে রাস্তা ঘাট ছিলনা।আত্রাই নদীর ছিল চলাচলের এক মাত্র পথ। দুর দুরান্ত থেকে পাল তোলা সহ বড় বড় নৌকা নদী পথে আসতো আত্রাই সহ আহসানগঞ্জহাট ঘাট এলাকায়।

হাটের পাট বোঝাই নৌকা ছুটে যেত তার গন্তব্যে।আর আত্রাইয়ে ছিল পাটের গুদাম।সেই থেকেই পাটের জন্য আত্রাই বিখ্যাত হয়ে উঠে। 

চলতি মৌসুমে পাটের বীজ বপনের সময় আবহাওয়া অনুকুলে না থাকলেও পরবর্তীতে সময় মত বৃষ্টিপাত হওয়াতে এবার পাটের বাম্পার ফলন হয়েছে। ইতিমধ্যে পাট চাষীরা পাট আরোহন করে পানিতে পচানী দেওয়া পাট পরিস্কার করা ধোয়া শেষে শুরু করেছেন পাট বিক্রি। তবে ব্যাপক বন্যার কারণে পাট ক্ষেতের আশেপাশে পর্যাপ্ত জলাশয় থাকলেও পাট ধোওয়া শ্রমিক সংকটের কারণে পাট চাষীরা বড়ই বেকায়দায় পড়েছিলেন। বর্তমানে আত্রাইয়ে দু’বেলা খাবার দিয়ে একজন পাট ধোয় শ্রমিকের মজুরী সাড়ে ৪শ থেকে ৫শ টাকা। সারা দিনে একজন শ্রমিক ১৮ থেকে ২০ বিড়া পাট ধুতে পারে। এছাড়া অনেকে কৃষক চুক্তি ভিত্তিক পাট ধোয়া শ্রমিক নিয়োগ করেছেন। উপজেলা কৃষি অফিস ও পাট চাষী সূত্রে জানা গেছে, আত্রাইয়ে এবার কমবেশি সব এলাকাতেই পাটের চাষাবাদ হয়েছে। গত বছরের তুলনায় এবার একশত পঞ্চাশ হেক্টর জমিতে পাটের আবাদ বেশি হয়ে মোট পাটের চাষ হয়েছে ২শত ০৭ হেক্টর জমিতে। প্রতি হেক্টরে গড়ে ৯ বেল উৎপাদনের লক্ষ হিসাবে এখানে মোট উৎপাদনেরর লক্ষমাত্রা নির্ধারিন করা হয়েছে ৫ হাজার ৮৩ মেট্রিক টন।

আজ বৃহস্পতিবার সাপ্তাহিক  আহসানগঞ্জহাট  সরেজমিনে বেশ কিছু ব্যবসায়ী ও হাট মালিকের  কথা বলে জানা যায়। আহসানগঞ্জহাটের নানা তথ্য।  

হাট মালিক মো.আবুল কালাম আজাদ বলেন, আত্রাইয়ের এই হাটে শুধু পাট ই নয় সব ধরণের   ফসল সহ রকমারী জিনিস পাওয়া যায় এই আহসানগঞ্জহাটে। স্থানীয় ব্যবসায়ী শরিফুল ইসলাম বলেন,এবারের 

পাট মানে ভালো হওয়ায় দেশের বিভিন্ন জেলা থেকে ব্যাপারীরা আত্রাইয়ের ঐতিহ্যবাহী আহসানগঞ্জহাটে ছুটে আসছেন পাট ক্রয় করতে। ঢাকা খুলনা সিরাজগঞ্জ পাবনা সহ দেশের দূর দূরান্ত থেকে তারা আত্রাইয়ের আহসানগঞ্জহাটে এসে ট্রাক বোঝাই করে পাট কিনে নিয়ে যাচ্ছেন। আত্রাইয়ের মধ্যে আহসানগঞ্জহাট পাটের জন্য বিখ্যাত।

 আহসানগঞ্জহাটে পাট কিনতে এসেছেন সিরাজগঞ্জের  বেপারী তরিকুল আলম। তিনি জানান, তারা বাপ দাদার আমল থেকে পাটের ব্যবসা করে আসছেন। তিনি নিয়মিত আহসানগঞ্জহাট  থেকে পাট কিনে থাকেন। প্রতি হাটে তিনি ট্রাক করে পাট কিনে থাকেন। গত বছরের তুলনায় এবার পাটের দর কিছুটা বাড়তি বলে তিনি জানান। এবার পাটের দর মানভেদে ২ হাজার থেকে ২৩শ টাকা পর্যন্ত।

আরেক ন্যবসায়ী দূর্গাপুরের দুলাল উদ্দিন জানান, অনেক আগে থেকে পাটের ব্যবসা করছি।অনান্য হাটের চাইতে আহসানগঞ্জহাটে সব রকম পাট পাওয়া যায়। আর এই হাটে পাট  কেনাও যায় মান দেখে দেখে। এবার অন্য বছরের তুলনায় পাটের দাম একটি বেশি। 

পাট বিক্রি করতে আসা উপজেলার দমদমা গ্রামের আওলাদ হোসেন জানান,এবারের পাট চাষ একটু বিঘ্নিত হলেও পাটের ভালো দাম থাকায় আমরা অনেকটা খুশি।

এভাবে আত্রাইয়ের আহসানগঞ্জহাট থেকে প্রতি সপ্তাহের বৃহস্পতিবারে ট্রাক ভর্তি হয়ে পাট চলে যাচ্ছে দেশের বিভিন্ন জেলায়। এবিষয়ে উপজেলা কৃষি কর্মকর্তা কৃষিবিদ কে এম কাউছার জানান,বর্তমানে পলিথিন যে ভাবে মহামারী আকার ধারন করছে। এবং যত্রতত্র ভাবে পলিথিনির ব্যবহার বাড়তে থাকায় পরিবেশ ক্রমশই বিষময় হয়ে ওঠছে। এ থেকে পরিত্রানের জন্য পাটের বহুমূখী ব্যবহার ছাড়া কোন বিকল্প নেই। আত্রাইয়ে আমরা পাট চাষীদের বিভিন্ন ভাবে সহায়তা করে থাকি । যাতে পাটের উৎপাদন আগামীতে আরো বৃদ্ধি করা যায়।

সিরাজগঞ্জে ১ হাজার পিস ইয়াবা ট্যাবলেটসহ দুই মাদক ব্যবসায়ীকে গ্রেফতার করেছে গোয়েন্দা পুলিশ

 সিরাজগঞ্জে ১ হাজার পিস ইয়াবা ট্যাবলেটসহ দুই মাদক ব্যবসায়ীকে গ্রেফতার করেছে গোয়েন্দা পুলিশ


মাসুদ রানা সিরাজগঞ্জ জেলাপ্রতিনিধিঃগ্রেফতারকৃতরা হলেন, বেলকুচি উপজেলার জিধুরী গ্রামের মৃত আব্দুল মজিদের ছেলে ওয়াসিম সরকার (৩৯) ও ঢাকার গাজীপুর জেলার জয়দেবপুর থানার কুমুড় মাঝখাতিয়া গ্রামের মৃত আবু সাইদের ছেলে বেলায়েত হোসেন (৩৩)।

বৃহস্পতিবার (২০ আগষ্ট) সকালে সিরাজগঞ্জ গোয়েন্দা পুলিশের ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মিজানুর রহমান গ্রেফতারের বিষয়টি নিশ্চত করেন।

ওসি আরো জানান, সিরাজগঞ্জ পুলিশ সুপার হাসিবুল আলমের দিক নির্দেশনায় গোপন সংবাদের ভিত্তিত্বে (১৯ আগষ্ট) গভীর রাতে এস.আই মোঃ নাজমুল হক সঙ্গীয় ফোর্সের সহযোগিতায় বেলকুচি উপজেলার কদমতলী এলাকায় অভিযান চালিয়ে ১ হাজার পিস ইয়াবাসহ তাদের গ্রেফতার করা হয়।

গ্রেফতারকৃতদের বিরুদ্ধে বেলকুচি থানায় মাদকদ্রব্য আইনে মামলা দায়ের করা হয়েছে। আজ সকালে তাদের আদালতের মাধ্যমে জেল হাজতে প্রেরন করা হয়েছে।

নাটোরে এক বৃদ্ধকে কুপিয়ে জখম

 নাটোরে এক  বৃদ্ধকে কুপিয়ে জখম


 



রাজশাহী ব্যুরোঃনাটোর গুরুদাসপুরে মোঃ  মহর আলী(৬০) নামের এক বৃদ্ধকে জমি-জমা সংক্রান্ত জেরে কুপিয়ে জখম করার অভিযোগ  পাওয়া গেছে। গতকাল  বুধবার সন্ধ্যায় উপজেলার চাপিলা ইউনিয়নের নওপাড়া গ্রামে ওই ঘটনা ঘটেছে। স্থানীয় সূত্রে জানাযায়, নওপাড়া লললএলাকার মৃত – মোবারক হোসেনের ছেলে ওয়াকিলের সাথে মহর আলীর জমি-জমা সংক্রান্ত বিরোধ চলে আসছিলো।গতকাল  বুধবার সকালে মহর আলী তার নিজস্ব পুকুর পরিষ্কার করেন। অভিযুক্ত ওয়াকিল সেই পুকুরটি নিজেদের দাবি করে। এ ঘটনায় দুই পক্ষের মধ্যে উত্তেজনা বিরাজ করে। সন্ধ্যায় নওপাড়া বাজারে আহত মহর আলীকে একা পেয়ে ধারালো অস্ত্র দিয়ে ওয়াকিল, শুকুর আলী, তারাজুল, মোশারফ, ইলিয়াসসহ তার সহযোগিরা তাকে এলোপাথারী ভাবে কুপিয়ে জখম করে। এসময় তার চিৎকারে স্থানীয়রা এগিয়ে এসে তাকে উদ্ধার করে গুরুদাসপুর স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ভর্তি করেন। অভিযুক্ত ওয়াকিল হোসেনকে একাধিকবার ফোন করা হলেও তাকে ফোনে পাওয়া যায়নি।গুরুদাসপুর থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা মোঃ মোজাহারুল ইসলাম জানান, এখনও কোন অভিযোগ পাওয়া যায়নি। অভিযোগ পেলে তদন্ত সাপেক্ষে প্রয়োজনীয় পদক্ষেপ গ্রহণ করা হবে।

দৈনিক কপোতক্ষ নিউজ পোর্টালের কয়রা প্রতিনিধি মোটর সাইকেল দূর্ঘটনায় আহত হয়েছেন

 দৈনিক কপোতক্ষ নিউজ পোর্টালের কয়রা প্রতিনিধি  মোটর সাইকেল দূর্ঘটনায় আহত হয়েছেন




সম্রাট হোসেন,শৈলকুপা উপজেলা (ঝিনাইদহ ) প্রতিনিধিঃ

দৈনিক  কপোতক্ষ নিউজ পোর্টালের খুলনা জেলার কয়রা উপজেলা প্রতিনিধি সৎ ও সাহসী সাংবাদিক  মোঃ ফারাদ হোসেন আজ সকাল ৮টার দিকে ৬নং কয়রা থেকে কয়রা সদরের যাওয়ার পথে  গোবরা ঘাটাখালীর বাঁধের অবস্থা নিয়ে নিউজ করার জন্য যাওয়ার পথে মোটরসাইকেল  দূর্ঘটনার শিকার হয়েছেন। বর্তমান তার চিকিৎসা  চলছে। তার সুস্থতার জন্য "দৈনিক কপোতক্ষ নিউজ" পরিবার দেশ বাসির কাছে  দোয়া চেয়েছেন।

মুজিববর্ষে মুক্তিযোদ্ধা প্রজন্ম পরিষদ জবি শাখার ই-ম্যাগাজিন 'বিজয়ের উল্লাস

 মুজিববর্ষে মুক্তিযোদ্ধা প্রজন্ম পরিষদ জবি শাখার ই-ম্যাগাজিন 'বিজয়ের উল্লাস




জবি প্রতিনিধিঃ

মুজিবশতবর্ষ উপলক্ষ্যে বীর মুক্তিযোদ্ধা প্রজন্ম পরিষদ, জগন্নাথ বিশ্ববিদ্যালয় (জবি) শাখা প্রথম বারের মতো আয়োজন করতে চলেছে সৃজনশীল সাহিত্য প্রতিযোগিতা ও সাহিত্য বিষয়ক একটি বিশেষ ম্যাগাজিন 'বিজয়ের উল্লাসের'। জগন্নাথ বিশ্ববিদ্যালয়ের সাবেক ও বর্তমান শিক্ষার্থীরা এতে অংশগ্রহণ করতে পারবে।


প্রতিযোগিতাটি ১৫ আগষ্ট থেকে ১৫ অক্টোবর পর্যন্ত চলবে। ১ মাস ব্যাপী এই আয়োজনটি সকল জবিয়ানদের জন্যে উন্মুক্ত। একজন প্রতিযোগী সবগুলো ক্যাটাগরিতেই অংশগ্রহণ করতে পারবে। বীর মুক্তিযোদ্ধা প্রজন্ম পরিষদ, জগন্নাথ বিশ্ববিদ্যালয় শাখার ফেসবুক গ্রুপের মাধ্যমে এই প্রতিযোগিতায় অংশগ্রহণ করতে হবে। পুরো প্রতিযোগীতার সেরা লিখাগুলো প্রকাশিত হবে বীর মুক্তিযোদ্ধা প্রজন্ম পরিষদ, জগন্নাথ বিশ্ববিদ্যালয় শাখার ই-ম্যাগাজিন 'বিজয়ের উল্লাসে'। ছড়া-কবিতা, প্রবন্ধ-নিবন্ধ, ভ্রমণকাহিনী, গল্প, স্মৃতিকথা, ফিচার, বৈজ্ঞানিক কল্পকাহিনী এই বিষয়সমূহের উপর শিক্ষার্থীরা লেখা জমা দিতে পারবে। মুক্তিযুদ্ধ বিষয়ক লেখা অগ্রাধিকার পাবে।   


প্রতিযোগিতায় অংশগ্রহণকারীদের নির্দেশনাবলী:

পোস্টের ক্যাপশন নিচের নিয়ম অনুযায়ী দিতে হবেঃ

#বিজয়ের_উল্লাস

#বীর_মুক্তিযোদ্ধা_প্রজন্ম_পরিষদ

#জগন্নাথ_বিশ্ববিদ্যালয়_শাখা

  ▫ নাম:

 ▫ ডিপার্টমেন্ট :

 ▫ ব্যাচ:

 ▫গ্রুপ লিংকঃ

https://www.facebook.com/groups/324812278558933/


যদি কোনো অংশগ্রহণকারীর ফেসবুক আইডি না থাকে তবে সেক্ষেত্রে অংশগ্রহনকারী বাবা, মা অথবা ভাই, বোনের আইডি থেকে তার নাম এবং সে কোন ডিপার্টমেন্টে পড়ে ও ব্যাচ উল্লেখ করে দিতে হবে। প্রতিযোগীতায় অংশগ্রহণ করতে গুগল ফর্মটি পূরণ করুন।

https://docs.google.com/forms/d/e/1FAIpQLSeQatx-C7pohsK5wUYSqQpUYYpPpJ8wSXM-z-srXzThe7fLgQ/viewform?usp=send_form


মূল্যায়ন পদ্ধতিঃ

আপনার পুরো কাজের ৫০%  বিচারক প্যানেল এবং বাকি ৫০% আপনার জমা দেওয়া পোস্টের লাইক, কমেন্ট, শেয়ার বিবেচনার ভিত্তিতে দেওয়া হবে। বেশি নাম্বার পেতে তাই বন্ধুদের মেনশন/কমেন্ট/শেয়ার করতে পারবেন বেশি করে।


প্রতিযোগীর পোস্ট বাতিল হওয়ার কারন

পোষ্টে কোন ধরণের ব্যক্তি বা ব্যবসায়িক প্রতিষ্ঠানের নাম বা লোগো ব্যবহার করা যাবেনা। শুধুমাত্র বীর মুক্তিযোদ্ধা প্রজন্ম পরিষদ, জগন্নাথ বিশ্ববিদ্যালয় শাখা গ্রুপের লিংক ছাড়া অন্য কোন লিংক ব্যবহার করলে।


ফেসবুক গ্রুপঃ 

https://www.facebook.com/groups/324812278558933/

ফেসবুক পেইজঃ

https://www.facebook.com/বীর-মুক্তিযোদ্ধা-প্রজন্ম-পরিষদজগন্নাথ-বিশ্ববিদ্যালয়-শাখা-105139494161795/

ইভেন্ট লিংকঃ

https://facebook.com/events/s/%E0%A6%AC%E0%A6%9C%E0%A6%AF%E0%A6%B0-%E0%A6%89%E0%A6%B2%E0%A6%B2%E0%A6%B8/961682620942495/


উল্লেখ্য যে, বীর মুক্তিযোদ্ধা প্রজন্ম পরিষদ, বাংলাদেশের একমাত্র মুক্তিযোদ্ধার নাতি-নাতনীদের স্বতন্ত্র সংগঠন। সারাদেশব্যাপী সংগঠনটি কমিটি দিয়ে মুক্তিযোদ্ধার নাতি-নাতনীদের সংঘবদ্ধ করছে। এরই ধারাবাহিকতায় জগন্নাথ বিশ্ববিদ্যালয় শাখার মুক্তিযোদ্ধার নাতি-নাতনীদের নিয়ে ৭১ সদস্য বিশিষ্ট কমিটি ও গঠন করা হয়।