যশোরের মুস্তাফিজুর রহমান কাবুল মারা গেছে!

যশোরের মুস্তাফিজুর রহমান কাবুল মারা গেছে!




স্টাফ রিপোর্টারঃ  যশোরের অতিনপরিচিত মুখ মুস্তাফিজুর রহমান কাবুল মারা গেছে । তিনি বঙ্গবন্ধু মেডিকেল বিশ্ববিদ্যালয়ে চিকিৎসাধীন অবস্থায় রাত ৯ টার আগে  মৃত্যু বরণ করেছেন  (ইন্না…রাজিউন)। মৃত্যুকালে তার বয়স হয়েছিল ৬০ বছর। মণিরামপুরের ঝাপায় তার গ্রামের বাড়িতে  পারিবারিক কবরস্থানে তাকে দাফন করা হবে বলে জানা গেছে। গুরুতর অসুস্থ হয়ে পড়ায় রোববার কাবুলকে বঙ্গবন্ধু মেডিকেল বিশ্ববিদ্যালয়ে ভর্তি করা হয়েছিল বলে তার স্বজনরা জানান। রাত নয়টার কিছু সময় আগে তিনি সেখানে মারা যান।

 মাসের মাঝামাঝি সময়ে মুস্তাফিজুর রহমান কাবুল অসুস্থ হয়ে পড়েন বলে জানান  যুবমৈত্রী যশোর জেলা কমিটির সভাপতি অনুপ কুমার পিন্টু। ২২ এপ্রিল যশোরের কুইন্স হসপিটালে এমআরআই করা হয়। রিপোর্ট আসে তার মাথায় মাল্টিপল টিউমার আছে। দেরি না করে তিনি ঢাকায় চলে যান। সেখানে মেয়ের বাসায় থেকে তিনি রাজধানীর বিভিন্ন হাসপাতালে পরীক্ষা-নিরীক্ষা করান। এতে তার ফুসফুসের ক্যানসারও ধরা পড়ে। চিকিৎসার অংশ হিসেবে মহাখালী ক্যানসার হাসপাতালে কাবুলের শরীরে পাঁচ দফা রেডিয়েশন দেওয়া হয়েছিল। কিন্তু কেমোথেরাপি দেওয়ার সুযোগ হয়নি।অ্যাডভোকেট আজিজুর রহমান সাবু জানান, মুস্তাফিজুর রহমান কাবুলের বয়স হয়েছিল ৬০। মণিরামপুর উপজেলার ঝাঁপা গ্রামে জন্ম নেওয়া কাবুল জনতা ব্যাংকে চাকরি করতেন। সেই সূত্রে যশোর শহরের বারান্দিপাড়ায় স্থায়ীভাবে বসবাস করতেন তিনি।

কাবুল স্ত্রী, দুই ছেলে-মেয়ে, বাবাসহ বহু শুভাকাক্সক্ষী ও অনুসারী রেখে গেছেন।

মরদেহ কখন যশোরে আনা হবে, তা নিশ্চিত হওয়া যায়নি। তবে, তার লাশ যশোরে আনা হবে এবং দাফন হবে মণিরামপুরের ঝাঁপা গ্রামে তার বন্ধুমহল নিশ্চিত করেছেন।

নওগাঁয় গাঁজাসহ বাবা-মেয়ে গ্রেপ্তার!

নওগাঁয় গাঁজাসহ বাবা-মেয়ে গ্রেপ্তার!




রাজশাহী ব্যুরো
নওগাঁর সাপাহারে ৪ কেজি গাঁজা সহ বাবা ও মেয়েকে গ্রেপ্তার করেছে থানা পুলিশ। পুলিশ সূত্রে জানা গেছে,গতকাল শনিবার সকাল ১০ টায় উপজেলার গোয়ালা ইউনিয়নে ফজিলাপুর মোড় নামক স্থান একটি ভ্যানে যাত্রী সেজে যাচ্ছিল ওই বাবা-মেয়ে। 
এসময় গোপন সংবাদের ভিত্তিতে থানার অফিসার ইনচার্জ আব্দুল হাই এর নির্দেশনায় উপ-পরিদর্শক (এসআই) ইমরান হোসেন সঙ্গীয় ফোর্স নিয়ে অভিযান চালিয়ে ৪ কেজি গাঁজাসহ ব্যবসায়ি আলাউদ্দীন (৪৫) ও তার কথিত মেয়ে সামিহা (১৯) কে গ্রেপ্তার করে থানায় নিয়ে আসে।

এ সময় তাদের নিকট থেকে ৪ কেজি গাঁজা, ১টি স্মার্টফোন, ১টি বাটন ফোন সহ নগদ অর্থ ১হাজার ৬শ টাকা জব্দ করেছে পুলিশ। এ বিষয়ে আটককৃতদের বিরুদ্ধে মাদকদ্রব্য নিয়ন্ত্রণ আইনে একটি মামলা দায়ের হয়েছে বলে জানান ৷

তেঁতুলিয়ায় করোনা পজেটিভ ব্যক্তি পলাতক!

তেঁতুলিয়ায় করোনা পজেটিভ ব্যক্তি পলাতক!




সাব্বির হোসেন, তেঁতুলিয়া(পঞ্চগড়) প্রতিনিধি।

পঞ্চগড় জেলার তেতুলিয়া উপজেলা  ৩নং তেতুলিয়া ইউনিয়নের ৭ নং ওয়ার্ড এর সিদ্দিক নগর গ্রামে আইবুল নামে একজন এর করোনা ভাইরাস পজেটিভ শনাক্ত হয়েছে।

জানা গেছে আইবুল (৩৫) কিছুদিন আগেই ঢাকা ফেরত, তেতুলিয়া মডেল থানা পুলিশ তার বাড়ি লকডাউন করেছিল, কিন্তু তিনি লকডাউন না মেনে সে বাহিরে ঘুড়াফেরা করে।

ঐ এলাকাবাসীর অভিযোগ, সে লকডাউন না মেনে  ঈদের নামাজ মসজিদে আদায় করেন , 

তেতুলিয়া মডেল থানার ওসি জহিরুল ইসলাম জানান, আইবুলের বাড়ির সবাই এখন লকডাউনে আছে, এবং তার বাড়ির লোকজন কেউই জানেন না যে আইবুল কোথায় আছে।

মাধবপুর উপজেলায় সেরা প্রেমদাময়ী উচ্চ বালিকা বিদ্যালয়

মাধবপুর উপজেলায় সেরা প্রেমদাময়ী উচ্চ বালিকা বিদ্যালয়




লিটন পাঠান হবিগঞ্জ জেলা প্রতিনিধি

হবিগঞ্জের মাধবপুরে উপজেলায় সেরা প্রেমদাময়ী উচ্চ বালিকা বিদ্যালয় পাশের হার ৭০.৩২% জিপি এ- ৫ পেয়েছে ১০২. দেশ ব্যাপী এক যোগে ফলাফল মাধ্যমিক সার্টিফিকেট পরীক্ষার ফলাফল 
প্রকাশ হয়েছে।মাধবপুরে এসএসসি পরীক্ষায় ৩ হাজার ৬শ ৬২ জন 
অংশগ্রহণ করে উত্তীর্ণ হয়েছে ২ হাজার ৫শ ৭৫জন। পাশের হার শতকরা ৭০.৩২ ভাগ। এর মধ্যে প্রেমদাময়ী উচ্চ বালিকা 

বিদ্যালয় থেকে ১৮জন জিপিএ-৫ পেয়ে উপজেলার মধ্যে শীর্ষে রয়েছে।  মাধবপুর পাইলট উচ্চ বিদ্যালয়  ও জগদীশপুর জেসি হাই স্কুল এন্ড কলেজ দুটি  স্কুলে ১৫ জন জিপিএ-৫ পেয়ে দ্বিতীয় অবস্থানে আছে।আন্দিউড়া উম্মেতুন্নেছা উচ্চ বিদ্যালয় ও গোবিন্দপুর সরকারি হাইস্কুলে ১২ জন জিপিএ-৫ 
পেয়ে উপজেলার মাঝে ৩য় অবস্থানে রয়েছে।  এছাড়া বিদ্যৎ উন্নয়ন উচ্চ 

বিদ্যালয় শাহজীবাজার জিপিএ-৫ পেয়েছে ৫জন,সৈয়দ সঈদ উদ্দিন স্কুল এন্ড কলেজ ৪ জন, শাহজাহানপুর উচ্চ বিদ্যালয়ে ২জন,  আউলিয়াবাদ আর কে উচ্চ বিদ্যালয় ১জন, অপরুপা মাধ্যমিক বালিকা বিদ্যায়তন১জন,উপজেলা আদর্শ উচ্চ বিদ্যালয় ৩ জন,বঙ্গবীর ওসমানী উচ্চ বিদ্যালয় ৫ জন,ছাতিয়াইন 
বিশ্বনাথ হাইস্কুল এন্ড কলেজে ৪জন। অন্যদিকে মাধবপুরে ৫টি মাদ্রাসায় 

দাখিল পরীক্ষায় ২৯২জন অংশগ্রহণ করে   উত্তীর্ণ হয়েছে ২৮৫ জন।পাশের হার শতকরা ৯৭.৬০ ভাগ।জিপিএ-৫ পেয়েছে ৫জন। ইটাখোলা সিনিয়র আলিম মাদ্রাসা জিপিএ-৫ পেয়েছে ২ জন,কাজিরচক মাদ্রাসায় জিপিএ-৫ পেয়েছে ১জন, ছালেহাবাদ এমএস দাখিল মাদ্রাসায় ১জন, মাধবপুর দরগাঁহ বাড়ি দাখিল মাদ্রাসায় ১ জন, ইটাখোলা সিনিয়র দাখিল মাদ্রাসায় ১ জন জিপিএ-৫ পেয়েছে।

উপজেলা মাধ্যমিক শিক্ষা কর্মকর্তা আবুল হোসেন জানান,ফলাফল মোটামুটি সন্তোষজনক। তবে অভিভাবকরা সচেতন হলে আরো ভালো করা সম্ভব। আমি বিশ্বাস করি সবার সহযোগীতা পেলে আগামীতে আরো ভালো ফলাফল উপহার দিতে পারব।

মাগুরার শ্রীপুরে প্রাকৃতিক দূর্যোগে ক্ষতিগ্রস্থদের মাঝে অনুদান প্রদান

মাগুরার শ্রীপুরে প্রাকৃতিক দূর্যোগে ক্ষতিগ্রস্থদের মাঝে অনুদান প্রদান




মো:রাসেল হোসেন,শ্রীপুর (মাগুরা)প্রতিনিধি 

মাগুরার শ্রীপুর উপজেলায় আজ রবিবার উপজেলা মাঠে আম্পান ঝড়,শিলাবৃষ্টি ও অগ্নিকান্ডে ক্ষতিগ্রস্থদের মাঝে টিন,নগদ অর্থ ও চাউল বিতরন করেন মাগুরা ১ আসনের সংসদ সদস্য জনাব সাইফুজ্জামান শিখর । 
মাগুরার শ্রীপুর উপজেলা পরিষদ চত্বরে রবিবার সকালে প্রাকৃতিক দূর্যোগে ক্ষতিগ্রস্থদের মাঝে অনুদান প্রদান করা হয়েছে। মাগুরা-১ আসনের সংসদ সদস্য এ্যাড. সাইফুজ্জামান শিখর এমপি প্রধান অতিথি হিসেবে আম্পান, শিলাবৃষ্টি ও অগ্নিকাণ্ডে ক্ষতিগ্রস্হ ৬০ টি পরিবারের মধ্যে ৬০ বান্ডিল টিন ও নগদ ৩ হাজার করে টাকা ও ১০ মেট্রিক টন চাল বিতরণ করেন। শ্রীপুর উপজেলা প্রকল্প বাস্তবায়ন কর্মকর্তার কার্যালয় এ বিতরণ অনুষ্ঠানের আয়োজন করে। এ সময় অন্যদের মধ্যে উপস্থিত ছিলেন উপজেলা চেয়ারম্যান মিয়া মাহমুদুল গনি শাহিন, উপজেলা নির্বাহী অফিসার মোঃ ইয়াছিন কবীর, থানার অফিসার ইনচার্জ আলী আহমেদ মাসুদ, উপজেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি আবুল কালাম আজাদ, সদর ইউপি চেয়ারম্যান মোঃ মশিয়ার রহমান, শ্রীপুর প্রেস ক্লাবের সভাপতি মুসাফির নজরুল, আমলসার ইউপি চেয়ারম্যান সেবানন্দ বিশ্বাস, শ্রীকোল ইউপি চেয়ারম্যান মোস্তাসিম বিল্লাহ সংগ্রাম, দ্বারিয়াপুর ইউপি চেয়ারম্যান জাকির হোসেন কানন, উপজেলা প্রকল্প বাস্তবায়ন কর্মকর্তা কোহিনুর জাহান সহ আরও অনেকে।


কেশবপুরের ১১টি ইউনিয়নে ২০২০-২১ অর্থ বছরের উন্মুক্ত বাজেট ঘোষণা

কেশবপুরের ১১টি ইউনিয়নে ২০২০-২১ অর্থ বছরের উন্মুক্ত বাজেট ঘোষণা




মোরশেদ আলম 
কেশবপুর যশোর প্রতিনিধি। 

যশোরের কেশবপুর উপজেলার ত্রিমোহিনী, সাগরদাঁড়ী, মজিদপুর, বিদ্যানন্দকাটি, মঙ্গলকোট, কেশবপুর সদর, পাঁজিয়া, সুফলাকাটি, গৌরীঘোনা, সাতবাড়িয়া ও হাসানপুর ইউনিয়ন পরিষদের ২০২০-২১ অর্থ বছরের উন্মুক্ত বাজেট ইউপি সদস্য ও বিভিন্ন শ্রেণী-পেশার মানুষের উপস্থিতিতে স্ব স্ব ইউনিয়ন পরিষদে ঘোষণা করা হয়েছে।

ত্রিমোহিনী ইউনিয়ন পরিষদে ইউপি সচিব নিরঞ্জন বিশ্বাসের পরিচালনায় পরিষদের সভাকক্ষে ২৮ মে সকল ইউপি সদস্য ও বিভিন্ন শ্রেণী-পেশার মানুষের উপস্থিতিতে ২০২০-২১ অর্থ বছরের উন্মুক্ত বাজেট ঘোষণা করেন ইউপি চেয়ারম্যান এস এম আনিছুর রহমান। বাজেটে মোট আয় দেখানো হয়েছে ১ কোটি ১৯ লাখ ৯৩ হাজার ৪ শত টাকা, মোট ব্যায় দেখানো হয়েছে ১ কোটি ১৯ লাখ ৬৮ হাজার ৯শত টাকা এবং উদ্বৃত্ত তহবিল দেখানো হয়েছে ২৪ হাজার ৫ শত টাকা।

সাগরদাঁড়ী ইউনিয়ন পরিষদে ইউপি সচিব অপূর্ব কুমার পালের পরিচালনায় পরিষদের সভাকক্ষে ২৮ মে সকল ইউপি সদস্য ও বিভিন্ন শ্রেণী-পেশার মানুষের উপস্থিতিতে ২০২০-২১ অর্থ বছরের উন্মুক্ত বাজেট ঘোষণা করেন ইউপি চেয়ারম্যান কাজী মুস্তাফিজুল ইসলাম মুক্ত। বাজেটে মোট আয় দেখানো হয়েছে ২ কোটি ১২ লাখ ১৩ হাজার ৭৮ টাকা, মোট ব্যায় দেখানো হয়েছে ২ কোটি ৯ লাখ ৯২ হাজার ২শত ৬২ টাকা এবং উদ্বৃত্ত তহবিল দেখানো হয়েছে ২ লাখ ২০ হাজার ৮ শত ১৬ টাকা।

মজিদপুর ইউনিয়ন পরিষদে ইউপি সচিব আবুল হোসেনের পরিচালনায় পরিষদের সভাকক্ষে ২৮ মে সকল ইউপি সদস্য ও বিভিন্ন শ্রেণী-পেশার মানুষের উপস্থিতিতে ২০২০-২১ অর্থ বছরের উন্মুক্ত বাজেট ঘোষণা করেন ইউপি চেয়ারম্যান হুমায়ুন কবীর পলাশ। বাজেটে মোট আয় দেখানো হয়েছে ১ কোটি ৩১ লাখ ১৮ হাজার ৭ শত টাকা, মোট ব্যায় দেখানো হয়েছে ১ কোটি ৩০ লাখ ৪৭ হাজার ৮শত টাকা এবং উদ্বৃত্ত তহবিল দেখানো হয়েছে ৭০ হাজার ৯ শত টাকা।
বিদ্যানন্দকাটি ইউনিয়ন পরিষদে ইউপি সচিব জাকির হোসেনের পরিচালনায় পরিষদের সভাকক্ষে ৩০ মে বিকালে সকল ইউপি সদস্য ও বিভিন্ন শ্রেণী-পেশার মানুষের উপস্থিতিতে ২০২০-২১ অর্থ বছরের উন্মুক্ত বাজেট ঘোষণা করেন ইউপি চেয়ারম্যান আমজাদ হোসেন। বাজেটে মোট আয় দেখানো হয়েছে ১ কোটি ২৩ লাখ ১ শত ৫০ টাকা, মোট ব্যায় দেখানো হয়েছে ১ কোটি ২২ লাখ ৪৮ হাজার ১ শত টাকা এবং উদ্বৃত্ত তহবিল দেখানো হয়েছে ৫২ হাজার ৫০ টাকা।

মঙ্গলকোট ইউনিয়ন পরিষদে ইউপি সচিব মোখলেছুর রহমানের পরিচালনায় পরিষদের সভাকক্ষে ৩১ মে দুপুরে সকল ইউপি সদসও বিভিন্ন শ্রেণী-পেশার মানুষের উপস্থিতিতে ২০২০-২১ অর্থ বছরের উন্মুক্ত বাজেট ঘোষণা করেন ইউপি চেয়ারম্যান মনোয়ার হোসেন। বাজেটে মোট আয় দেখানো হয়েছে ১ কোটি ৭৭ লাখ ২২ হাজার ৫ শত ২২ টাকা, মোট ব্যায় দেখানো হয়েছে ১ কোটি ৮১ লাখ ২২ হাজার ৫ শত ২২ টাকা এবং ঘাটতি তহবিল দেখানো হয়েছে ৪ লাখ টাকা।

কেশবপুর সদর ইউনিয়ন পরিষদে ইউপি সচিব হুমায়ূন কবীরের পরিচালনায় পরিষদের সভাকক্ষে ২৩ মে সকালে সকল ইউপি সদস্য ও বিভিন্ন শ্রেণী-পেশার মানুষের উপস্থিতিতে ২০২০-২১ অর্থ বছরের উন্মুক্ত বাজেট ঘোষণা করেন ইউপি চেয়ারম্যান অধ্যাপক আলাউদ্দীন আলা। বাজেটে মোট আয় দেখানো হয়েছে ১ কোটি ৩৬ লাখ ৭৫ হাজার ৮শত ৫৮ টাকা, মোট ব্যায় দেখানো হয়েছে ১ কোটি ৩৬ লাখ ১৩ হাজার ৬শত ৫৮ টাকা এবং উদ্বৃত্ত তহবিল দেখানো হয়েছে ৬২ হাজার ২ শত টাকা।

পাঁজিয়া ইউনিয়ন পরিষদে ইউপি সচিব মিজানূর রহমানের পরিচালনায় পরিষদের সভাকক্ষে ২৮ মে দুপুরে সকল ইউপি সদস্য ও বিভিন্ন শ্রেণী-পেশার মানুষের উপস্থিতিতে ২০২০-২১ অর্থ বছরের উন্মুক্ত বাজেট ঘোষণা করেন ইউপি চেয়ারম্যান শফিকুল ইসলাম মুকুল। বাজেটে মোট আয় দেখানো হয়েছে ১ কোটি ৫ লাখ ৭৪ হাজার টাকা, মোট ব্যায় দেখানো হয়েছে ১ কোটি ৫ লাখ ২৯ হাজার টাকা এবং উদ্বৃত্ত তহবিল দেখানো হয়েছে ৪৫ হাজার টাকা।

সুফলাকাটি ইউনিয়ন পরিষদে ইউপি সচিব এবাদত হোসেনের পরিচালনায় পরিষদের সভাকক্ষে ৩১ মে বিকালে ইউপি সদস্য ও বিভিন্ন শ্রেণী-পেশার মানুষের উপস্থিতিতে ২০২০-২১ অর্থ বছরের উন্মুক্ত বাজেট ঘোষণা করেন ইউপি চেয়ারম্যান আব্দুস সামাদ মাষ্টার। বাজেটে মোট আয় দেখানো হয়েছে ১ কোটি ২৯ লাখ ২৯ হাজার টাকা, মোট ব্যায় দেখানো হয়েছে ১ কোটি ২৮ লাখ ৪৯ হাজার টাকা এবং উদ্বৃত্ত তহবিল দেখানো হয়েছে ৮০ হাজার টাকা।
গৌরীঘোনা ইউনিয়ন পরিষদে ইউপি সচিব ক্ষিতিশ চন্দ্র সরকারের পরিচালনায় পরিষদের সভাকক্ষে ৩১ মে সকালে সকল ইউপি সদস্য ও বিভিন্ন শ্রেণী-পেশার মানুষের উপস্থিতিতে ২০২০-২১ অর্থ বছরের উন্মুক্ত বাজেট ঘোষণা করেন গৌরীঘোনা ইউপি চেয়ারম্যান এস এম হাবিবুর রহমান। বাজেটে মোট আয় দেখানো হয়েছে ৩ কোটি ৮৬ হাজার ৮ শত টাকা, মোট ব্যায় দেখানো হয়েছে ৩ কোটি ৪৩ হাজার ৬ শত ৫০ টাকা এবং উদ্বৃত্ত তহবিল দেখানো হয়েছে ৪৩ হাজার ১ শত ৫০ টাকা।

সাতবাড়িয়া ইউনিয়ন পরিষদে ইউপি সচিব প্রভাত কুমার সিংহ-এর পরিচালনায় পরিষদের সভাকক্ষে ২৮ মে সকল ইউপি সদস্য ও বিভিন্ন শ্রেণী-পেশার মানুষের উপস্থিতিতে ২০২০-২১ অর্থ বছরের উন্মুক্ত বাজেট ঘোষণা করেন ইউপি চেয়ারম্যান সামছুদ্দীন দফাদার। বাজেটে মোট আয় দেখানো হয়েছে ১ কোটি ৫০ লাখ ৪৮ হাজার ৭ শত ৫০ টাকা, মোট ব্যায় দেখানো হয়েছে ১ কোটি ৪৭ লাখ ১৫ হাজার ৭ শত ১১ টাকা এবং উদ্বৃত্ত তহবিল দেখানো হয়েছে ৭৬ হাজার ৫ শত ৩৯ টাকা।

হাসানপুর ইউনিয়ন পরিষদে ইউপি সচিব মিনারুল ইসলামের পরিচালনায় পরিষদের সভাকক্ষে ২৮ মে সকল ইউপি সদস্য ও বিভিন্ন শ্রেণী-পেশার মানুষের উপস্থিতিতে ২০২০-২১ অর্থ বছরের উন্মুক্ত বাজেট ঘোষণা করেন ইউপি চেয়ারম্যান প্রভাষক জুলমাত আলী। বাজেটে মোট আয় দেখানো হয়েছে ১ কোটি ২৪ লাখ ২২ হাজার টাকা, মোট ব্যায় দেখানো হয়েছে ১ কোটি ২৩ লাখ ৮৬ হাজার টাকা এবং উদ্বৃত্ত তহবিল দেখানো হয়েছে ৩৬ হাজার টাকা।

নওগাঁর আত্রাইয়ে ইয়াবাসহ আটক- ৩

নওগাঁর আত্রাইয়ে ইয়াবাসহ আটক- ৩



 
মোঃ ফিরোজ হোসাইন 
রাজশাহী ব্যুরো

নওগাঁর আত্রাইয়ে ৭০পিচ ইয়াবাসহ ৩মাদক ব্যবসায়ীকে আটক করেছে আত্রাই থানা পুলিশ। শনিবার সন্ধ্যায় বিশেষ অভিযান চালিয়ে তাদেরকে ইয়াবাসহ আটক করা হয়।

রবিবার সকালে তাদের নওগাঁ জেল হাজতে প্রেরণ করা হয়েছে।

আটকৃতরা হলো উপজেলা ছাত্রলীগের সাবেক শিক্ষা ও পাঠচক্র বিষয়ক সম্পাদক ও উপজেলার ভবানীপুর গ্রামের মৃত-বেলাল হোসেনের ছেলে তানভীর আহমেদ প্রিন্স (২৩), একই গ্রামের মজিবর রহমানের ছেলে সোহেল রানা (২৪) ও উপজেলা ছাত্রলীগের সহ-সভাপতি ও পূর্ব দূর্গাপুর গ্রামের রুস্তম আলীর ছেলে জোনায়েদ হোসেন দেশা (২৩)।

আত্রাই থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মোসলেম উদ্দিন জানান, গোপন সংবাদের ভিত্তিতে এসআই মোস্তাফিজুর রহমান ও প্রদীপ জানতে পারেন যে ওই ৩জন মাদক ব্যবসায়ী ইয়াবা নিয়ে নওগাঁ থেকে আত্রাই উপজেলার নিজ নিজ এলাকায় বিক্রির উদ্দ্যেশ্যে নিয়ে আসছে। পথেমধ্যে উপজেলার মিরাপুর নামক স্থানে তাদেরকে তল্লাসী করে তাদের কাছ থেকে ৭০পিচ ইয়াবা পাওয়া যায়। তিনি আরো বলেন তারা দীর্ঘদিন যাবত গোপনে এলাকায় মাদকের ব্যবসা করে আসছিলো। আটককৃতদের বিরুদ্ধে মাদক দ্রব্য আইনে মামলা দায়ের করা হয়েছে। রবিবার সকালে তাদেরকে আদালতে সোর্পদ করা হয়েছে। 

নাটোর বড়াইগ্রামে পানিতে ডুবে এক শিশুর মৃত্যু

নাটোর বড়াইগ্রামে পানিতে ডুবে এক শিশুর মৃত্যু




রাজশাহী ব্যুরো
নাটোরের বড়াইগ্রামের জামাইদিঘা এলাকায় বাড়ীর পাশে পুকুরে ভাসমান অবস্থায় মোঃ মুস্তাকিম  (৪) নামে এক শিশুর মৃত্যু  হয়েছে। রোববার দুপুর একটার দিকে ভাসতে দেখে স্বজনরা এসে মরা দেহ  উদ্ধার করেন। নিহত শাকিল আহম্মেদ উপজেলার জামাইদিঘা গ্রামের শরিফুল ইসলামের ছেলে। 

স্থানীয় সূত্রে জানা যায়, রোববার সকাল থেকে মুস্তাকিমকে খুঁজে পাওয়া যাচ্ছিল না। পরে দুপুর একটার দিকে প্রতিবেশীরা বাড়ীর পাশের পুকুরে একটি মরা দেহ  ভাসতে দেখে মুস্তাকিমের স্বজনদের খবর দেন। খবর পেয়ে স্বজনেরা এসে মরা দেহ উদ্ধার এবং সনাক্ত করেন। এ ঘটনায় এলাকায় শোকের ছায়া নেমে এসেছে।

কুয়েত প্রবাসী ভাই ও বোনেরা যারা বাংলাদেশে ছুটিতে আছেন তাদের জন্য সুযোগ আকামা লাগানোর

কুয়েত প্রবাসী ভাই ও বোনেরা যারা বাংলাদেশে ছুটিতে আছেন  তাদের জন্য সুযোগ আকামা লাগানোর



আকরাম হোসেন সুমন কুয়েত রিপোর্টারঃ

কুয়েত থেকে ছুটিতে আছেন 
আপনারা কোন প্রকার চিন্তা করবেন না, যারা দেশে আছেন তাদের আকামা লাগানো যাবে এবং যাচ্ছে, এখন 
ফিঙ্গারপ্রিন্ট ছাড়াও আকামা লাগানো যায় কেউ যদি বলে বাংলাদেশীদের আকামা ফিঙ্গার ছাড়া লাগানো যায়না বা অন্য কিছু তাহলে বুঝতে হবে সে না জেনেই বলেছে।

যাদের আকামা ১৮ নম্বার তারা তাদের মন্দুবের সাথে যোগাযোগ করলে আকামা লাগবে, অফিস বন্ধ থাকলেও কোম্পানি  তাদের আকামা রিনিউ করতে পারছেন। 

১- প্রথমে শোন পাস করবেন 
২- দামান ছাহি অর্থাৎ রক্তের গ্রুপ দিবেন
৩- কপিল অথবা মন্দুবকে বলবেন দামান ছাহি বা মেডিকেল রিপোর্ট  কপি, পাসপোর্ট কপি, নতুন শোন পাস কপি,  সিভিল আইডি কপি এবং কপিলের বতাকা কপি, ইত্তেমাদ কপি,  এগুলো নিয়ে বলবেন কপিল অথবা মন্দুবকে মশরেফ জয়াজাতে যেতে সেইখানে এই গুলো জমা দিবে আর বলবে আমেল খারেজ বিলাদ, তখন এই কাগজ রেখে দিবে আর বলবে ৩ দিনের ভিতরে রিপোর্ট অনলাইনে আসবে, তারপর অনলাইনে আকামা রিনিউ হয়ে যাবে, কেউ বিভ্রান্ত হবেন না।

এখন এগুলো করার জন্য সব চেয়ে বেশি দরকার, কোম্পানি অনলাইন করা থাকতে হবে। এখন অনেকেই বলবে যে ভাই আমার আকামা মক্তবের অনলাইনে করা নাই তাহলে তাদের কে বলব  আপনাদের কোম্পানির মেলাফ অনলাইনে জাওয়াজাত শোন দুইটা ই করে দিবে । আর একটা জরুরি কথা শোন পাস এবং দামান ছাহি করতে ফিঙ্গার ফিং লাগেনা।

নোটঃ যারা কুয়েতের বাহিরে আছেন কেবল তাদের ই আকামা লাগাতে ফিঙ্গার লাগবেনা।

যাদের আকামা খাদেম তাদের আকামা ও লাগানো যাবে তাদের জন্য আগে দামান ছাহি অর্থাৎ রক্তের গ্রুপ  দিতে হবে তারপর -ইজনে আমেল ও সিভিল আইডি কপি+পাসপোর্ট কপি+দামান ছাহি অর্থাৎ মেডিকেল রিপোর্ট কপি+ কপিলের বতাকার কপি- এগুলো নিয়ে কপিলের বতাকার এড্রেস অনুযায়ী ফিঙ্গার অফিসে জমা দিলে তিন দিনে আবার অনলাইনে রিপোর্ট আসবে আসলে আকামা লেগে যাবে।

যাদের ফ্যামিলি_ভিসাঃ ২২ নম্বার তারাও খাদেমের মত ই সব কিছু শুধু কপিল হবে বাংলাদেশী আজনবী বাকি কাজ সবই একি সিস্টেম খাদেমের।

দ্বিতীয়তঃ যারা দেশে আসছেন ৬ মাস পূর্ন হয়ে গেছে তাদের কে বলি তারা ও কোন প্রকার টেনশন করবেন না..

কুয়েত সরকার ইতিমধ্যে ৬ মাসের মেয়াদের যে নির্দিষ্ট সময় সীমা ছিলো এইটা আপাতত তিন মাস বৃদ্ধি করেছে তার মানে ৯ মাস হলেও আপনি যেতে পারবেন, আর যদি ৯ মাস অভার হয়েও যায় আকামা র মেয়াদ থাকে তারা ধৈর্য ধারণ করুণ আর আকামার মেয়াদ থাকলে কুয়েত সরকার কোন একটা ব্যবস্থা করবে ইনশাআল্লাহ, কোন প্রকার দালাল এবং প্রতারক চক্র হতে সাবধান থাকবেন, নিজকে সর্তকতা অবলম্বন করুন। নিজে সুস্থ থাকুন অন্যকে সুস্থ রাখুন সব সময় সমাজিক দূরত্বতা বজায় রাখুন 
ধন্যবাদ সবাইকে

মানুষের পাশে খাবার ও পানীয় নিয়ে রেড ক্রিসেন্ট চট্টগ্রাম

মানুষের পাশে খাবার ও পানীয় নিয়ে রেড ক্রিসেন্ট চট্টগ্রাম



রিয়াজুল করিম রিজভী স্টাফ রিপোর্টার চট্টগ্রাম

করোনা ভাইরাসের সংক্রমণ রোধে মানুষ যখন ঘরে অবস্থান করছে তখন মানুষের মুখে হাসি ফোটাঁনোর প্রত্যয় নিয়ে মাঠে থেকে কাজ করছে রেড ক্রিসেন্ট চট্টগ্রামের যুব স্বেচ্ছাসেবকরা। প্রতিনিয়ত হাজারো মানুষের মাঝে রান্না করা খাবার বিতরণের জন্য খাদ্য সামগ্রী যথাযথ স্থানে পৌঁছে দেওয়ার লক্ষ্যে কাজ করে যাচ্ছে স্বেচ্ছাসেবকরা। বাংলাদেশ রেড ক্রিসেন্ট সোসাইটি চট্টগ্রাম সিটি ইউনিটের উদ্যোগে যুব রেড ক্রিসেন্ট, চট্টগ্রামের বাস্তবায়নে এইচ এস বি সি ব্যাংকের অর্থায়নে নিয়মিত সেবা কার্যক্রমের অংশ হিসেবে নগরীর হাজারো মানুষের মাঝে রেড ক্রিসেন্ট চট্টগ্রামের উপহার স্বরূপ রান্না করা খাবার প্রেরণ করা হয়। বাংলাদেশ রেড ক্রিসেন্ট সোসাইটির ম্যানেজিং বোর্ড সদস্য ও জেলা রেড ক্রিসেন্ট ইউনিটের ভাইস চেয়ারম্যান ডাঃ শেখ শফিউল আজম এর তত্ত্বাবধানে নগরীর মির্জাপুলস্থ ডেকোরেশন গলি এলাকায় অসহায়, দরিদ্র ও নিম্ন বৃত্ত পরিবারের মাঝে রান্না করা খাবার বিতরণ করা হয়। চট্টগ্রাম সিটি ইউনিটের সেক্রেটারী আবদুল জব্বার এর পরিচালনায় যুব রেড ক্রিসেন্ট চট্টগ্রামের যুব প্রধান মোঃ ইসমাইল হক চৌধুরী ফয়সালের নেতৃত্বে রেড ক্রিসেন্ট চট্টগ্রামের বিভিন্ন ইউনিটের দায়িত্বপ্রাপ্ত শিক্ষক, অধ্যাপকদের সম্মান জানিয়ে উপহার প্রদান করা হয়।
এছাড়াও রেড ক্রিসেন্ট চট্টগ্রাম জেলা ইউনিটের ব্যবস্থাপনায় কোকাকোলা কোম্পনীর সহযোগীতায় কোভিড-১৯ পরিস্থিতিতে কর্মরত চট্টগ্রাম বিভাগীয় কমিশনার কার্যালয়ের প্রশাসনিক কর্মকর্তা, স্বাস্থ্যসেবায় নিয়োজিত চট্টগ্রাম মেডিকেল কলেজ হাসপাতালের চিকিৎসক, হাসপাতালের রোগীদের, কর্মকর্তাদের জন্য পানীয় প্রেরণ করা হয়। উক্ত কার্যক্রম সমূহে উপস্থিত ছিলেন সিটি ইউনিট লেভেল অফিসার মুহাম্মদ ইয়াহইয়া বখতিয়ার, যুব রেড ক্রিসেন্ট চট্টগ্রামের ক্রীড়া ও প্রচার প্রকাশনা বিভাগীয় প্রধান কৃষ্ণ দাশ, সিনিয়র যুব সদস্য জৌর্তিময় ধর, কার্যকরী পর্ষদ সদস্য ও যুব স্বেচ্ছাসেবকরা।

সিরাজগঞ্জের উল্লাপাড়ায় এক কিশোরী SSC পরীক্ষায় উত্তীর্ণ হতে না পেরে আত্মহত্যা

সিরাজগঞ্জের উল্লাপাড়ায়  এক কিশোরী SSC পরীক্ষায় উত্তীর্ণ হতে না পেরে  আত্মহত্যা



 মাসুদ রানা সিরাজগঞ্জ জেলাপ্রতিনিধিঃ
দেশের এই করোনা পরিস্থিতিতে এসএসসি পরীক্ষার্থীদের দীর্ঘ অপেক্ষার পর আজ ফলাফল প্রকাশ করেছে শিক্ষা বোর্ড। এবারের এই এসএসসি পরীক্ষায় পাশ না করতে পারায় সিরাজগঞ্জের উল্লাপাড়ায় মাফিয়া খাতুন নামের এক কিশোরী আত্মহত্যার ঘটনা ঘটেছে।
ওই কিশোরী সিরাজগঞ্জের উল্লাপাড়া উপজেলার পূর্ণিমাগাঁতী ইউনিয়নের পুঠিয়া গ্রামের মইনুল হোসেনের মেয়ে। সে পূর্ণিমাগাঁতী ফলিয়া উচ্চ বিদ্যালয় থেকে এবার এসএসসি পরীক্ষায় অংশগ্রহণ করেছিলেন।
আজ এসএসসি পরীক্ষার ফলাফল প্রকাশ হওয়ার পর, পরীক্ষায় উত্তীর্ণ হতে পারেননি দেখে ঘরের ভিতরে ওড়না পেঁচিয়ে আত্মহত্যা করেন বলে জানাজায়।
এই রিপোর্ট লেখা পর্যন্ত থানায় কোনো অভিযোগ দায়ের করা হয়নি

চলনবিলে আগাম বন্যায় ক্ষতি ভূট্টা চাষীদের, ডুবে গেছে ৫০ হেক্টর জমি

চলনবিলে আগাম বন্যায় ক্ষতি ভূট্টা চাষীদের, ডুবে গেছে ৫০ হেক্টর জমি




রাজু আহমেদ, নাটোর: 
চলনবিলের বিভিন্ন পয়েন্ট দিয়ে পানি প্রবেশ করায় তলিয়ে গেছে নাটোরের সিংড়া উপজেলার ডাহিয়া ও ইটালী ইউনিয়নের  ৫০ হেক্টর জমির ভুট্টা ক্ষেত। আগাম বন্যার পানি ঢুকে পড়ায় পানিতে নেমেই ভুট্টা তুলতে হচ্ছে অনেক কৃষককে।
এসব কৃষক ভূট্টা নিয়ে পড়েছে বিপাকে।
মহাজন সংকটে আশানুরুপ দাম ও মিলছেনা। এতে করে এবার ভুট্টা চাষীদের মুখের হাসি হারায় গেছে। 

সরোজমিনে দেখা গেছে, টানা বৃষ্টি ও ঢলের কারণে অনেক বেশিরভাগ ভুট্টা জমি ডুবে গেছে। ডাহিয়া ইউনিয়নের বেড়াবাড়ি, কাউয়াটিকরি, শরিষাবাড়ি, ডাহিয়া, পানলি, হিজলী, সাতপুকুরিয়া গ্রামের শতাধিক কৃষক ক্ষতির সম্মুখীন।
অনেকে জমি থেকে ভুট্টা তুলেছেন, কিন্তু খরচ বেশি দিতে হয়েছে। নৌকায় করে, পানিতে নেমে ভূট্টা তুলতে দেখা গেছে।
জমিতে ও বাড়ির আঙ্গিনায় এবং চলনবিলের বিভিন্ন পয়েন্টে শতাধিক কৃষক ভুট্টা ছড়ানোর কাজে ব্যস্ত।
কিন্তু প্রতিকুল আবহাওয়া এবং আগাম বন্যায় এবার  বিপাকে পড়েছে। শ্রমিকরা তলিয়ে থাকা  ভুট্টা সড়কে তোলার চেষ্টা করছে। কিছু কিছু এলাকায় সড়ক ডুবে গেছে।  ভুট্টা ছড়ানোর সংকটে পড়েছে কেউ কেউ। 

সাতপুকুরিয়া গ্রামের ভূট্টা চাষী নজরুল ইসলাম জানান, এবছর ৫ বিঘা জমিতে আবাদ করি। বিঘা প্রতি ৪০ মন করে আবাদ হয়েছে। তবে আগাম বন্যায় অনেক ভুট্টা পানিতে পড়ে গেছে। 

এবার ভুট্টার দাম ৪০০/৫০০ টাকা মন বিক্রি করছে। ভুট্টা তোলা, ছড়ানোয় খরচ অনেক। তাছাড়া আগাম বন্যায় আসায় এবার ভুট্টা চাষীদের মুখে হাসি নাই। 

কাউয়াটিকরি গ্রামের ফিরোজ মৃধার ৪ বিঘা জমির ভুট্টা ঘরে তুলতে পারেনি।
আজম মৃধা, বুলু মন্ডলসহ আরো অনেকের   জমির ভুট্টা অর্ধেক ঘরে তুলতে পারেনি। আকস্মিক পানি এসে ক্ষতির সম্মুখীন এসব কৃষক। 

ইউপি মেম্বার শারফুল ইসলাম সেন্টু জানান, কাউয়াটিকরি গ্রামের তৌফিক, মুকুল, সোহরাব, মহসিন, আজমসহ অনেকের জমির ভুট্টা তুলতে পারেনি।  রাতারাতি বন্যার পানি এসে ডুবে গেছে। 


ডাহিয়া গ্রামের কৃষক আবু হানিফ বলেন, ‘আমার ২২ বিঘা জমিতে এবার ভুট্টার ফলন ভালো হয়েছিল। কিন্তু বৃষ্টির পানি এসে জমে সব ভুট্টা নষ্ট হচ্ছে। অনেক ভুট্টা জমিতে পড়ে আছে। 

তাহেরা বেগম বলেন, আমরা গরিব মানুষ। স্বামী অসুস্থ। ঋণ করে তিন বিঘা জমিতে ভুট্টা চাষ করেছিলাম। তাও পানিতে ডুবে শেষ হয়ে গেছে। 

এ দিকে ডাহিয়া ইউপি চেয়ারম্যান আবুল কালাম কৃষকদের এই অবস্থা থেকে উত্তরণের জন্য বিলের ভিতর দিয়ে প্রবাহিত আনন্দনগর খালে স্লুইসগেট নির্মান এবং খালের মুখ খননের ব্যবস্থার দাবি জানান।
তিনি আরো বলেন, এবার আগাম বন্যার কারনে চলনবিলে বন্যার পানি ঢুকে পড়ায় ভুট্টা চাষীরা লোকসানে পড়েছে।  বিশেষ করে আমার ইউনিয়নে অধিকাংশ কৃষক ক্ষতির সম্মুখীন।  এজন্য তিনি সংশ্লিষ্টদের দৃষ্টি কামনা করেছেন। 

উপজেলা কৃষি কর্মকর্তা সাজ্জাদ হোসেন জানান, এবার উপজেলায় ১৭০০ হেক্টর জমিতে ভুট্টা চাষ হয়েছে। ঢলের পানি ও অতিবর্ষণে ডাহিয়া এলাকায় ৫০ হেক্টর জমি পানিতে ডুবে গেছে। আমরা ক্ষতিগ্রস্ত কৃষি জমি সরেজমিনে পরিদর্শন করেছি। কৃষকদের পরামর্শ প্রদান করা হয়েছে। 


মোংলায় নতুন পরিস্থিতিতে করোনা মোকাবেলায় আইন-শৃংখলা কমিটির সভা

মোংলায় নতুন পরিস্থিতিতে করোনা মোকাবেলায়  আইন-শৃংখলা কমিটির সভা



মোঃএরশাদ হোসেন রনি, মোংলা    
সাধারণ ছুটি প্রত্যাহারের প্রেক্ষাপটে নতুন পরিস্থিতিতে করোনা মোকাবেলায় কৌশল নির্ধারনে ৩১ মে রবিবার সকালে মোংলায় উপজেলা নির্বাহি অফিসারের কার্য্যালয়ে আইন-শৃংখলা কমিটির সভা অনুষ্ঠিত হয়। 

রবিবার সকাল ১১টায় অনুষ্ঠিত সভায় সভাপতিত্ব করেন উপজেলা নির্বাহি অফিসার মোঃ রাহাত মান্নান। সভায় উপস্থিত ছিলেন উপজেলা চেয়ারম্যান আবু তাহের হাওলাদার, মোংলা নৌ কন্টিনজেন্টথর লেঃ কমান্ডার আরিফুল ইসলাম, থানা অফিসার ইনচার্জ মোঃ ইকবাল বাহার চৌধুরী, উপজেলা ভাইস চেয়ারম্যান মোঃ ইকবাল হোসেন, সাবেক উপজেলা ভাইস চেয়ারম্যান সাংবাদিক মোঃ নূর আলম শেখ, উপজেলা সিনিয়র মৎস্য কর্মকর্তা এ জেড এম তৌহিদুর রহমান, উপজেলা প্রকল্প বাস্তবায়ন কর্মকর্তা মোঃ নাহিদুজ্জামান, ইউপি চেয়ারম্যান নিখিল চন্দ্র রায়, ইউপি চেয়ারম্যান মোল্লা মোঃ তারিকুল ইসলাম, ইউপি চেয়ারম্যান শেখ কবির হোসেন, ইউপি চেয়ারম্যান মোঃ ইস্রাফিল হোসেন, হোটেল মালিক সমিতির কাউন্সিলর খোরশেদ আলমসহ ব্যবসায়ী এবং মাঝি-মাল্লা ইউনিয়নের নেতৃবৃন্দ। সভার সিদ্ধান্ত মোতাবেক দোকান-পাট সকাল ১০টা থেকে বিকেল ৪টা পর্যন্ত খোলা থাকবে। এছাড়া নৌকা পারাপারের ক্ষেত্রে ১৫জনের বেশী যাত্রী বহন করা যাবেনা। নৌকায় ১টি মোটর সাইকেল থাকলে ১০জন যাত্রী বহন এবং ২টি মোটর সাইকেল থাকলে কোন যাত্রী বহন করা যাবে না। দশ বছরের শিশু এবং সত্তরর্ধো বৃদ্ধ বাজারে আসতে পারবেন না। খাবার হোটেলে এক টেবিলে ২টি চেয়ার থাকবে এবং ২জনের বেশী বসানো যাবে না। চায়ের দোকান খোলা থাকবে কিন্তু চা বিক্রি করা যাবে না। সপ্তাহে ১দিন মার্কেট বন্ধ রাখতে হবে। বাইরে বের হলে সবার জন্য মাস্ক ব্যবহার বাধ্যতামূলক। রাতা ৮টা থেকে ভোর ৬টা পর্যন্ত সবাইকে বাড়ীতে থাকতে হবে। গণপরিবহনে যাত্রী পরিবহন সরকারের সিদ্ধান্ত অনুযায়ি সীমিত পরিসরে করতে হবে।

কুষ্টিয়ায় মেয়ের থেকে বাবা মোবাইল কেড়ে নেয়ায় মেয়ের আত্নহত্যা

কুষ্টিয়ায়  মেয়ের থেকে বাবা মোবাইল কেড়ে নেয়ায় মেয়ের আত্নহত্যা




কুষ্টিয়া প্রতিনিধি। 

কুষ্টিয়ার ভেড়ামারায় মেয়ের থেকে মোবাইল ফোন কেরে নেয়ায় মেয়ে আরিফা খাতুন মেঘলা(১৮) কলেজ ছাত্রীর আত্মহত্যা করার অভিযোগ পাওয়া গেছে।

মেঘলা উপজেলার বাহাদুরপুর ইউনিয়নের গোঁসাই পাড়া গ্রামের মোঃ আলা উদ্দিনের মেয়ে এবং বিজেএম কলেজের একাদশ শ্রেণির ছাত্রী। নিহতের পরিবার ও থানা পুলিশ সূত্রে জানা যায়,মোবাইল ফোনে কারো সাথে অতিরিক্ত সময় কথা বলার কারণে পিতা আলা উদ্দিন মেয়ের স্মার্ট মোবাইল ফোন নিয়ে গত শুক্রবার তাঁর কর্মস্থল চট্টগ্রাম চলে যান।

এদিকে রবিবার সকালে সেই অভিমানে মেঘলা নিজের ওড়না দিয়ে তার শোবার ঘরের ধন্নার/ড্যাবের সাথে ফাঁসি দিয়ে আত্মহত্যা করে।

ভেড়ামারা থানার অফিসার মোহাম্মদ শাহজালাল জানান, লাশ উদ্ধার করে থানায় আনা হয়েছে এবং মর্গে প্রেরণের প্রক্রিয়া চলছে। থানায় অপমৃত্যুর মামলা হয়েছে। মামলা নং ০৬। তারিখঃ৩১/০৫/২০২০

মাধবপুরে কিসমত রেস্তোরাতে অপরিচ্ছন্ন পরিবেশে খাবার বিক্রি

মাধবপুরে কিসমত রেস্তোরাতে অপরিচ্ছন্ন পরিবেশে খাবার বিক্রি




লিটন পাঠান, হবিগঞ্জ জেলা প্রতিনিধি

হবিগঞ্জের মাধবপুর পৌর বাজারে কিসমত রেস্তোরাতে অবাধে বিক্রি করা হচ্ছে পচা-বাসি খাবার। এমনকি রেস্টুরেন্টে রান্না করার জায়গাটিও সব সময় থাকে অপরিচ্ছন্ন। খাবার রাখার স্থানে সারাক্ষণ মাছি উড়তে দেখা যায় বলে অভিযোগ তুলেছে স্থানীয়রা। এত অনিয়মের পরও প্রশাসন কোন ব্যবস্থা নিচ্ছেন না বলেও অভিযোগ করছেন ভোক্তারা। এ ছাড়া হোটেলে সকল অনিয়মের সাথে নিম্নমানের খাবার বিক্রি, নেই মূল্য তালিকা ও খাবারের মূল্য বেশি নেওয়া হচ্ছে বলেও অভিযোগ উঠেছে।

রবিবার (৩১-মে) দুপুরে সরেজমিনে মাধবপুর বাজারে কিসমত, রেস্তোরাতে গিয়ে দেখা যায়, খাবারের টেবিল গুলোতে সারাক্ষণ উড়ছে মাছি। রান্না ঘরের পাশেই বাথরুম। রান্নার জায়গাটিও অপরিচ্ছন্ন। হোটেল বয়দের হাতে নেই গ্লাবস ও মাথায় নেই হেডপট। যার ফলে হতে পারে করোনা ভাইরাসের আক্রান্ত, প্রায় ভোক্তারাই খাবারে চুল পাওয়ার অভিযোগ করছেন কর্তৃপক্ষকে।
কিসমত রেস্তোরাতে খেতে আসা জুয়েল মিয়া নামে এক যুবক জানান, কিসমত হোটেলে গলা কাটা দাম রাখা হয়। 

খাবারের মানও ভাল নয়। রেস্তোরার বয়দের হাতে লেগে থাকে ময়লা। মাথায় হেডপট ও হাতে হ্যান্ড গ্লাবস থাকে না। প্রায় সময় খাবারে চুল ও মাছি দেখা যায়। রান্নার পরিবেশও অত্যন্ত নোংরা।
কিসমত রেস্তোরাতে খেতে আসা পৌর শহরের বাসিন্দা জামাল উদ্দিন জানান, মাধবপুরে বাজারে কয়েক বছর রেস্টুরেন্ট ব্যবসা করতে পারলে অনেকেই গাড়ি বাড়ির মালিক হয়ে যান। একটি  থেকে অনেকে ২ থেকে ৩ টি 

রেস্টুরেন্টের মালিক হয়ে গেছেন বলেও জানান তিনি। এবং শ্হীনীয় কিছু লোক বলেছেন কিসমত রেস্টুরেন্টের ব্যবাসা করার লাইসেন্স নেই অভিযোগ রয়েছে।
এ ব্যাপারে উপজেলা স্যানিটেশন কর্মকর্তা মুহিবুর রহমানের সঙ্গে যোগাযোগ করা হলে তিনি জানান, পৌরসভার ভিতর যে রেস্টুরেন্ট 
গুলো রয়েছে সেগুলো দেখেন 
পৌর স্যানিটেশন কর্মকর্তা।

পৌর স্যানিটেশন কর্মকর্তা সৃজিত রায় জানান, শীঘ্রই অভিযান পরিচালনা করা হবে এবং সবাইকে শৃঙ্খলার মধ্যে নিয়ে আসা হবে। এ ব্যাপারে মাধবপুর উপজেলা সহকারী কমিশনার (ভূমি) আয়েশা আক্তারের সঙ্গে মুঠোফোনে যোগাযোগ করা হলে তিনি জানান, শীঘ্রই অপরিচ্ছন্ন রেস্তোরা গুলোতে অভিযান চালানো হবে।

মানবসেবাই যার লক্ষ্যঃঅস্ট্রেলিয়া প্রবাসী একজন নৌশাদ আলীর মানবিক গল্প

মানবসেবাই যার লক্ষ্যঃঅস্ট্রেলিয়া প্রবাসী  একজন নৌশাদ আলীর মানবিক গল্প




শাহ আলম জাহাঙ্গীর,
ব্যুরো চিফ, কুমিল্লা-

মোহাম্মদ  নৌশাদ আলী(৪৩)।কুমিল্লার মুরাদনগর উপজেলার রামচন্দ্রপুর গ্রামে যার জন্ম। যিনিজনকল্যাণমূলক কাজে নিজেকে ব্যস্ত রাখতে পছন্দ করেন মানবসেবাই যার একমাত্র লক্ষ্য।শৈশব  লালিত সেই লক্ষ্যে পৌঁছতে তরুণ বয়সেই পাড়ি দেন  সুদূর অস্ট্রেলিয়া। সিডনীতে পরিবার -পরিজন, ব্যবসা বাণিজ্যে ব্যস্ত সময় কাটালেও দেশের প্রতি
মাটির  টান বেশি।গভীর ভালোবাসায় সময় পেলেই চলে আসেন নিজ দেশে। মনোনিবেশ করেন সামাজিক,  ধর্মীয় ও শিক্ষার কাজে। তিনি নিজ অর্থ ব্যয় করে কিছু প্রকল্প হাতে নিয়েছেন। গড়ে তোলেন নৌশাদ আলী ফাউন্ডেশন। করোনার এই দুঃসময়ে প্রায় ৪৩৫ জন অসহায় দরিদ্রপরিবারের মাঝে  সম্প্রতি ত্রাণ এবং নগদ অর্থ বিতরণ করেন। এতিমখানায়,মসজিদ,মাদ্রাসা,স্কুলেসাহায্যের হাত বাড়িয়ে দেন এই উদার তরুণ প্রবাসী নৌশাদ আলী।
 যার জন্ম১৯৭৭ সালে।পিতা:মরহুম মোহাম্মদ চান মিয়া,দাদা:মরহুম বাদশা সেকান্দর আলী। তিনি রামচন্দ্রপুর আর,কে হাই স্কুল থেকে  মানবিক বিভাগ এসএসসি,কুমিল্লা সরকারি কলেজ থেকে এইচ,এস,সি ও বি,এস,এস এবং জগন্নাথ বিশ্ববিদ্যালয় থেকে মাস্টার ডিগ্রি অর্জন করেন। নৌশাদ আলীর স্রী আর্জিনা আক্তার  ঢাকার ইডেন কলেজ থেকে রসায়ন বিজ্ঞানে অনার্স,মাস্টার্স।
দুই ছেলে দুই মেয়ে নৌশাদ আলীর। ওরা হলো-
১.সাবা নূরীয়া আলী(১০) 
২.আলীফ ইসহাক আলী(৮ )
৩.হামীম সাইফ আলী(৪)
৪.ফাইজা নওরীন আলী(২)
৮ ভাই ৩ বোনের মধ্য সবার ছোট নৌশাদ আলী। তার ২ ভাই ও ১ চলে গেলেন না ফেরার দেশে ।
আলাপকালে নৌশাদ আলী বলেন, 
"১৯৯২ সালে কলেজে ভর্তি হয়ে ছাএ রাজনীতি শুরু করি ১৯৯৫ সালে এলাকায় আর্দশ ও সুস্হ রাজনীতিতে নেতৃত্ব দেই এবং সমাজ কল্যাণমূলক কাজে নিজেকে জড়িত করে ৫০জন সদস্য নিয়ে হিলফুল ফুযুল সমাজ কল্যাণ পরিষদ নামে একটি সংগঠন প্রতিষ্ঠা করি,যার সরকারি রেজিঃ নং কু-৯০,এলাকা থেকে মাদক দ্রব্য নির্মূল করার লক্ষ্যে এলাকায় কাজ করি।বেওয়ারিশ লাশ দাফনে উদ্যোগ নেই।
কেরাত,গজল,নাত প্রতিযোগিতা আয়োজন করে পুরস্কার বিতরণ করি।গ্রামীণ হা ডু ডু খেলার আয়োজন করে পুরস্কার দেই,
অধ্যাপক আব্দুল মজিদ কলেজের প্রথম ব্যাচের'৯৭ সালের বোর্ডের মেধা তালিকা প্রায় ৭ জন কে কাচারী প্রাঙ্গনে সংবর্ধনা অনুষ্ঠান আয়োজন করে পুরস্কার দেই, রামচন্দ্রপুর ঐতিহাসিক সম্মেলনের স্বেচ্ছাসেবকের দায়িত্ব ভার গ্রহন করি,
নৌকা বাজারের ২১ তম মাহফিলের প্রতিষ্ঠা আমি নিজে ও মাওলানা মজিবুর রহমান(সোনা মিয়া মোল্লা মাদ্রাসা)মরহুম লিল মিয়া (কাঁচা বাজার) ও গিয়াস উদ্দিন।,
২০০১ সালে আমি যখন অস্ট্রেলিয়া  চলে আসি ,আমাদের সংগঠন হিলফুল ফুযুল সমাজ কল্যাণ পরিষদ অকার্যকর হয়ে পড়ে,তখন থেকে আমি প্রতিষ্ঠা করি গোপনে (হাইড করে )পারিবারিক ও ব্যক্তিগত নৌশাদ আলীফাউন্ডেশন,শুরু হয় মানব কল্যাণের নবযাত্রা  নতুন ধাপ,আমার বাবা বেঁচে থাকা অবস্হা আমাদের বাড়ি থেকে প্রথম ৪ শতক জায়গা দান করেন মসজিদের জন্য,আমার চাচা এ এলাকাবাসির সহযোগিতায় মসজিদটিতে নামাজ পড়া শুরু করে ,২৭ রমজানে রাতে আমার বাবা মসজিদের মুসল্লিদেরকে খাওয়ানের ব্যবস্হা করতেন,বাবা মারা যাওয়ার পর তা আর কেউ করেনি,আমার বাবার নীতিকে স্বরণ করে ২০০১ সাল হতে ২০১৯ সাল পর্যন্ত মসজিদের মুসল্লিদেরকে খাওয়ানের ব্যবস্হা করে যাচ্ছি ,২০০৪ সালের বন্যা কবলিত মানুয়ের পাশে থাকতে পেরে নিজে অনেক সৌভাগ্য মনে করেছিলাম,তারপর মসজিদে মিনার করা,বিভিন্ন জায়গা টিউব ওয়েল দেওয়া,মসজিদ,মাদ্রাসা,স্কুল,কবরস্থানে ও অসহায় মানুষদেরকে নগদ বড় অংকের অর্থ দেওয়া,নৌশাদ আলী হাইস্কুল (প্রস্তাবিত),  প্রতিষ্ঠা ঢাকার নদীর দক্ষিনে বসুন্ধরা মাদ্রাসা ও মসজিদের জন্য জায়গা দান, অন কামিং কোম্পীনিগঞ্জ ইংলিশ ভার্সন স্কুল প্রতিষ্ঠার কাজ চলছে ও কলেজ করা ইত্যাদি আমার পরিকল্পনা আছে। তিনি বলেন  "বাংলাদেশে আমার যা সম্পত্তি আছে বেশীর ভাগই ফাউন্ডেশনের কল্যাণে চলে যাবে,আমার বাচ্চারাদের বাংলাদেশের কোন সম্পত্তি তাদের দরকার নাই,তাদের জন্য বড় পুঁজি মানুষের মত মানুষ হওয়া,বিলাসিতা নয়,আমি আশা করি আমার মরার পর আমার বাচ্চারা আমার ফাউন্ডেশনের হাল ধরবে ইনশা আল্লাহ্"। নৌশাদ আলী র সামাজিক কর্মকান্ডে এলাকার উন্নয়ন হবে এমনটাই এলাকাবাসী আশাপোষন করেন।

কুড়িগ্রামে এক যুবককে পিটিয়ে হত্যার আসামীদের ফাঁসির দাবীতে মানবন্ধন

কুড়িগ্রামে এক যুবককে পিটিয়ে হত্যার আসামীদের ফাঁসির দাবীতে মানবন্ধন



 মোঃইয়ামিন সরকার আকাশ
কুড়িগ্রাম প্রতিনিধিঃ
কুড়িগ্রামের উলিপুরে সিদ্দিকুর রহমান নামে এক যুবককে পিটিয়ে হত্যার আসামীদের ফাঁসির দাবীতে মানবন্ধন করেছে এলাকাবাসী।

রোববার (৩১ মে) সকালে উপজেলার দূর্গাপুর ইউনিয়নের যতিনের হাট বাজারে ঘন্টাব্যাপী মানবন্ধন করেছে এলাকাবাসী।

মানববন্ধনে বক্তব্য রাখেন, নিহতের ভাই ফেরদৌস রহমান, চাচা দবির উদ্দিন প্রমুখ।

উল্লেখ্য,উপজেলার দূর্গাপুর ইউনিয়নের অর্জুনডারা গোড়াই মুন্সিপাড়া গ্রামের কাচুয়া’র(৬৪) বাছুর গরু কয়েকদিন পূর্বে প্রতিবেশি আঃ মজিদের পুত্র আইনুল ইসলামের (৩৫)'র জমিতে নেমে ধান খায়। এসময় দুই পক্ষের মধ্যে কথাকাটি হয়।পরে বৃহস্পতিবার (২৮ মে) সন্ধায় ঘটনাটি মিমাংসার জন্য শালিস বৈঠক বসলে আইনুলের পরিবার মিমাংসা না মেনে উঠে যায়।পরে কাচুয়ার পরিবারের পক্ষ থেকে ঘরের চালে আম পড়া নিয়ে অভিযোগ তুলে আইনুলের সাথে ফের কথাকাটি শুরু হয়। এরই এক পর্যায়ে দু'পক্ষের সংঘর্ষে কাচুয়া, তার পুত্র সাদেকুল ইসলাম (৩৫), সিদ্দিকুর রহমান (৩১) এবং এনামুল (৪৫) ও মতিউর রহমান মন্ডল (৩৮) গুরুত্বর আহত হয়।স্থানীয়রা আহতদের উদ্ধার করে কুড়িগ্রাম সদর হাতপাতালে নেয়ার পথে সিদ্দিকুর রহমানের মৃত্যু হয়।আহতদের মধ্যে মতিয়ার রহমান মন্ডলকে রাতেই রংপুর মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে ভর্তি রয়েছে।অপর আহত ৩জন কুড়িগ্রাম হাতপাতালে চিকিৎসাধীন অবস্থায় রয়েছেন।এঘনায় জড়িত ১জনকে আটক করে জেল হাজতে পাঠায় পুলিশ।

লক ডাউন উপেক্ষা করে ফের সাতশতাধিক মানুষের সমাগম করল চেয়ারম্যান

লক ডাউন উপেক্ষা করে ফের সাতশতাধিক মানুষের সমাগম করল চেয়ারম্যান




নিজস্ব প্রতিবেদক : গতকাল ২৯ মে জুম্মার নামাজের পর রাধানগর খাজার বাজারে প্রায় ৭/৮ শত মানুষের সমাগম ঘটানোর অভিযোগ উঠেছে ইউপি চেয়ারম্যান আলাউদ্দীন মোল্লার নামে। 

এ বিষয়ে দোহার থানার ইউএনও আফরোজা আক্তার রিবা বলেন  মানুষের সমাগম করে তারা সালিশ করতে চেয়েছিল। কিন্তু আমরা তা করতে দেই নাই। যদি কোন কিছু হয় তাহলে আমি দুই পক্ষের দুই জন কে ডেকে নিয়ে সমাধান করার চেষ্টা করব। কি হয়েছে তা আমি নিজের কানে শুনব মানুষের মুখের কথায় আমি বিশ্বাস করব না। আসলে ঘটনাটি সত্যি না মিথ্যা এই সম্পর্কে আমি ক্লিয়ার না। আর এভাবে তারা তারা সালিশ করবে আমরা সেখানে যাবো এটাতো হতে পারে না। প্রয়োজনে আমার অফিসে দুই পক্ষের দুই জন কে ডেকে সমাধান করার চেষ্টা করব। 

এ বিষয়ে দোহার থানার অফিসার ইনচার্জ সাজ্জাদ হোসেন বলেন, রাধানগর খাজার বাজারে কিছু লোক জমায়েত হয়েছিল আমরা তাৎক্ষণিক ভাবে সরিয়ে দিয়েছি এবং আইন গত ব্যাবস্থা নেওয়া হচ্ছে। 

এ বিষয়ে আলাউদ্দিন মোল্লা বলেন, আজকে ইউএনও এই সামাজিক সালিশে উপস্থিতিত হওয়ার কথা ছিল। কিন্তু আজ সকালে ইউএনও এসিল্যান্ডের মাধ্যমে আমাকে জানান তিনি উপস্তিতিত থাকতে পারবেন না। তিনি আরও বলেন আমি আজকে এই সমাবেশে উপস্থিত ছিলাম না।

এ বিষয়ে বাদশা মোল্লা বলেন চেয়ারম্যান আলাউদ্দীন মোল্লা ইউনিয়ন পরিষদের চৌকিদারদের  ও তার ভাতিজা আকবর মোল্লা কে দিয়ে ইউনিয়নের সকল মসজিদে বিচার হওয়ার কথা বলে মানুষ জনকে দাওয়াত দিয়েছেন। ইউপি নির্বাচনকে কেন্দ্র করে  রাজনৈতিক ফায়দা হাসিলের জন্য এই ঘটনা ঘটিয়েছেন বলেও জানান তিনি।  

এ বিষয়ে বিলাসপুর ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের সভাপতি রাশেদ চোকদার বলেন 
ইউএনও এবং থানার ওসি সাহেবের কথা বলে গতকাল খাজার বাজারে বিলাসপুর ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান আলাউদ্দীন মোল্লা লক ডাউন উপেক্ষা করে কোন ধরনের সামাজিক দুরত্ব বা স্বাস্থ্য বিধি না মেনে প্রায় ৭/৮ শত মানুষের জনসমাগম ঘটিয়েছেন। খাজার বাজার মসজিদের জমি দাতা সদস্য আক্কাস শিকদার ও মসজিদের মুয়াজ্জিন নুর হোসেনের নামে বিভিন্ন স্লোগান দেওয়া হয় সমাবেশ থেকে । 

এ বিষয়ে সমাবেশে বক্তব্য প্রদানকারী মুফতী জিল্লুর রহমান জানান বিলাসপুর ইউনিয়ন পরিষদের চৌকিদার গতকাল সন্ধ্যায় আমাদের মসজিদে গিয়ে জানান, আজকে খাজার বাজারে সামাজিক সালিশ হবে। এই সালিশে ইউএনও স্থানীয় মুসল্লীদের উপস্থিত থাকতে বলেছেন। তাই আজকে জুম্মার নামাজের পর আমরা খাজার বাজারে উপস্থিত হই। কিন্তু ইউএনও, এসিল্যান্ড, ওসি কেউই উপস্থিত হন নাই। তখন উপস্থিত লোকজনকে আমি শান্তিপূর্ণভাবে চলে যেতে বলি।

এই বিষয়ে আরেক মুফতি মাসুদ তার ফেসবুক স্ট্যাটাসে লিখেন, " বন্ধুরা! অনেকে মনে করতে পারেন যে, লকডাউনের সময় সমাবেশ হল কেন?  বিষয় এমন নয়। বরং জনগন জানতে পেরেছ যে,আজ শুক্রবার খাজার বাজারে বিচার হবে। এবং সেখানে থানার ওসি সাহেব, টিউনু সাহেব ও এলাকার গন্ন মান্ন লোক থাকবে,  তাই জুমার পর থেকে তৌহিদি জনতা জমায়াত হতে থাকে,  কিন্তু পরে জানাগেল বিচার হবেনা, ওই সময় তৌহিদি জনতা উত্তেজিত ছিল। তাই আমরা জনতাকে সামনে নিয়ে প্রসাশনের নিকট সুস্থ বিচার কামনা করে মোনাজাতের মাধ্যমে সকলকে চলে যেতে বলি, এবং আইন নিজের হাতে তুলে না নিতে অনুরোধ করি"

স্থানীয় সুত্রে জানা যায়, রমজান মাসে খাজার বাজারে মসিজিদের মুয়াজ্জিন  নুর হোসেন সেহরির আগ মুহূর্তে মসজিদে বসে যিকির করেছেন। এই যিকির করার ফলে স্থানীয় আবদুল হক মোল্লার ছোট ছেলে মনির হোসেনের ঘুমে খুব ব্যাঘাত ঘটে, তাই মনির নুর হোসেন কে মসজিদে জিকির করতে নিষেধ করেন। নুর হোসেনকে বিভিন্ন ভাবে ভয় ভীতি প্রদর্শন করে অভিযুক্ত মনির হোসেন। এরপরে নুর হোসেন বিষয়টি উক্ত মসজিদের সভাপতি আক্কাস শিকদার কে  জানান। পরের দিন দুপুরে  আক্কাস শিকদার নুর হোসেন ও মনির হোসেনকে এই বিষয় নিয়ে ঝগড়া না করতে বলেন। এক পর্যায়ে  নুর হোসেন ও মনিরের মধ্যে হাতাহাতি শুরু হলে দুই জনকেই চর থাপ্পড় দিয়ে আলাদা করে দেন। এই ঘটনার সুত্র ধরে মনিরের বাবা বাদশা মোল্লাকে বিষয়টা জানান। ২২ মে রোজ শুক্রবার বিকাল ৪ টায় বাদশা মোল্লা বিলাসপুরের বিভিন্ন বয়সী প্রায়  দুই শতাধিক মানুষ জড়ো করেন খাজার বাজারের মসজিদে হামলা করার জন্য।  সেখানে উপস্থিতিত ছিলেন বিলাসপুর ইউনিয়ন চেয়ারম্যান আলাউদ্দীন মোল্লা। ঐ দিন সমাবেশে  আলাউদ্দিন মোল্লা আজ ২৯ মে শুক্রবার একটি সামাজিক সালিশ আহবান করেন। তার আহবানেই সরকারের লক ডাউন উপেক্ষা করে এই মানুষ জন এখন জড়ো হয়েছেন।

উল্লেখ্য, মে মাসের ২২ তারিখ শুক্রবার বিকাল ৪ টায় এরা উপস্থিত ছিল। এখানে করোনা ভাইরাসে আক্রান্ত লাভলু শিকদার ও উপস্থিত ছিলেন। মে মাসের ২৪ তারিখে লাভলু শিকদারের কোভিড ১৯ টেস্টে পজিটিভ রেজাল্ট আসছে। এখান থেকে করোনা ভাইরাস পুরো বিলাশপুরে ছড়িয়ে পড়তে পারে বলে আতংকে দিন কাটছে বিলাসপুর বাসীর।

এসএসসিতে গোল্ডেন জিপিএ-৫ পেয়েছে তামিমা কাওসাইন

এসএসসিতে গোল্ডেন জিপিএ-৫ পেয়েছে তামিমা কাওসাইন





মিরসরাই প্রতিনিধিঃএসএসসি পরিক্ষায় গোল্ডেন জিপিএ-৫ পেয়েছে তামিমা কাওসাইন। সে মিরসরাই প্রেসক্লাবের প্রতিষ্ঠাতা সদস্য, উপজেলা আওয়ামীলীগের সদস্য আলহাজ্ব মোঃ সেলিম উদ্দিনের মেয়ে ও প্রেসক্লাবের প্রতিষ্ঠাতা সভাপতি আলহাজ্ব মোঃ নিজাম উদ্দিনের ভাতিজি। তাঁর মায়ের নাম সাজেদা আক্তার রুমা। ঢাকা মহানগরী স্কলার্স স্কুল এ্যান্ড কলেজ থেকে পরিক্ষা দিয়ে এ ফলাফল অর্জন করে তামিমা। জেএসসি পরীক্ষায়ও সে জিপিএ-৫ অর্জন করেছিল।

তামিমা কাওসাইন উচ্চ শিক্ষা অর্জন করে দেশবাসীর সেবার মধ্য দিয়ে মা-বাবার মুখ উজ্জল করতে চায়। একজন আদর্শ মানুষ হিসেবে প্রতিষ্ঠা পেতে তামিমা কাওসাইন সকলের কাছে দোয়া প্রার্থী।

ফিরোজ মাহমুদ, মিরসরাই ০১৭৮৩৫৭৫৮৩২।

কুষ্টিয়া ঝাউদিয়া ইউনিয়নে খাদ্যবান্ধব কর্মসূচীর চাল আত্মসাতের অভিযোগ

কুষ্টিয়া ঝাউদিয়া ইউনিয়নে খাদ্যবান্ধব কর্মসূচীর চাল আত্মসাতের অভিযোগ





কুষ্টিয়া প্রতিনিধি: কুষ্টিয়া সদর উপজেলার ঝাউদিয়া ইউনিয়নে সরকারের খাদ্যবান্ধব কর্মসূচীর আওতায় ৭০০ হতদরিদ্রদের মাঝে খাদ্য সহায়তা প্রদান করা হয়। কিন্তু অভিযোগ উঠেছে খাদ্য বান্ধব কর্মসূচীর তালিকায় নাম থাকা অনেকেই জানেন না তাদের নামে চাল উত্তোলন করা হয়। আবার অনেকেই অভিযোগ করে বলেন, তাদের কার্ড তাদের কাছ থেকে ছিনিয়ে নিয়েছেন এক ইউপি সদস্য। 

ঝাউদিয়া ইউনিয়নের ৫নং ওয়ার্ডের খয়বারের স্ত্রী পারুল, রওশনের ছেলে আফজেল ও একই ওয়ার্ডের আক্তারের মেয়ে সাগরিকা জানেই না তাদের নামে খাদ্যবান্ধব কর্মসূচীর কার্ড হয়েছে। ২০১৬সালে তাদের নাম খাদ্যবান্ধব কর্মসূচীর তালিকায় আসলেও আজঅবধি কোন চালই পায়নি তারা। এমনকি তাদের নাম যে তালিকায় রয়েছে সেটাও জানতেন না তারা। বাংলাদেশ সরকারের মাননীয় প্রধানমন্ত্রী করোনা পরিস্থিতিতে হতদরিদ্রদের মাঝে ঈদ উপহার হিসেবে ২হাজার ৫শত টাকা মোবাইল ব্যাংকিং এর মাধ্যমে প্রদানের জন্য যে তালিকা প্রণয়নের নির্দেশ দেন, সেই সময় তারা জানতে পারে খাদ্যবান্ধব তালিকায় তাদের নাম রয়েছে।

অপরদিকে ৪নং ওয়ার্ডের মাসুম আলী মোল্লা ও লতিফের কার্ড নিয়ে নেন ৪,৫ ও ৬ নং ওয়ার্ডের মহিলা মেম্বার নাসরিন। তাদের অভিযোগ এখন পর্যন্ত তারাও কোন চাল পায়নি। তারা আরো অভিযোগ করে বলেন, তাদের কার্ডে চাল উত্তোলন করছে ঐ মহিলা মেম্বারের ভাই। এ বিষয়ে তারা একাধিকবার ঝাউদিয়া ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যানকে অবহিত করলেও কর্ণপাত করেনি তিনি। 

এ বিষয়ে ঝাউদিয়া ইউনিয়নের ৫নং ওয়ার্ডের মেম্বার পল্টু জানায়, বিষয়টি আমার জানা নেই, তবে আমার জানা মতে ৪ ও ৯নং ওয়ার্ডে কিছু সমস্যা আছে। কিন্তু আমার ওয়ার্ডে নেই। তিনি আরো বলেন, তবে শুনেছি তালিকায় যাদের নাম আছে, এমন কিছুজন চাল পায় না। তাদের চাল অন্য কেউ উঠিয়ে নেয়। এ বিষয়ে ডিলার ভালো বলতে পারবে। ঝাউদিয়া ইউনিয়ন পরিষদের ৪,৫ ও ৬নং ওয়ার্ডের মহিলা মেম্বার নাসরিন জানায়, আমি শুধুমাত্র ৪টি কার্ড জমা নিয়েছিলাম, তা ইউনিয়ন পরিষদে জমাও দিয়েছি। আমি কাউকে কার্ড দেয় নাই। ইউনিয়ন পরিষদ কাকে সেই কার্ডগুলো দিয়েছে আমার জানা নেই। 

এ বিষয়ে ঝাউদিয়া ইউনিয়নের খাদ্যবান্ধব কর্মসূচির ডিলার মফি হোসেন জানায়, কার্ডের অনিয়মের বিষয়ে আমার কিছু জানা নেই। যারা কার্ড নিয়ে আসে আমি তাদেরকেই চাল দিই। ঝাউদিয়া ইউনিয়নের চেয়ারম্যান কেরামত আলী জানায়, খাদ্যবান্ধব কর্মসূচীর তালিকা প্রনয়ন ও কার্ড বিতরনের দায়িত্ব থাকে মেম্বারদের। এ বিষয়ে আমার কিছু জানা নেই। তবে অনিয়ম হলে ব্যবস্থা নেওয়া হবে।

কুষ্টিয়া সদর উপজেলার নির্বাহী কর্মকর্তা জুবায়ের হোসেন চৌধুরী জানায়, এখন পর্যন্ত এ বিষয়ে কোন অভিযোগ আসেনি। অভিযোগ আসলে তদন্তের মাধ্যমে ব্যবস্থা গ্রহন করা হবে।

দিনাজপুর শিক্ষাবোডের্র এসএসসি পরীক্ষার ফল প্রকাশ : পাশের হার ৮২,৭৩ শতাংশ

দিনাজপুর শিক্ষাবোডের্র এসএসসি  পরীক্ষার ফল প্রকাশ : পাশের হার ৮২,৭৩ শতাংশ




দিনাজপুর প্রতিনিধি : এবার দিনাজপুর শিক্ষা বোর্ডের মাধ্যমিক স্কুল সার্টিফিকেট (এসএসসি-২০২০)‘র পরীক্ষার ফল প্রকাশ করেছে দিনাজপুর শিক্ষা বোর্ড। পাশের হার শতকরা ৮২ দশমিক ৭৩ শতাংশ। জিপিএ ৫  পেয়েছে ১২ হাজার ৮৬, ছেলেদের  চেয়ে  ভালো ফলাফল করেছে মেয়েরা।
দিনাজপুর মাধ্যমিক ও উচ্চ মাধ্যমিক শিক্ষাবোর্ডের পরীক্ষা নিয়ন্ত্রক প্রফেসর মোঃ তোফাজ্জুর রহমানর জানান,দিনাজপুর শিক্ষাবোর্ডে এবারে পাশের হার ৮২.৭৩ শতাংশ যা গতবারে ছিল ৮৪.১০শতাংশ। এবারে দিনাজপুর শিক্ষাবোর্ডের অধীনে মোট ২৬৪৬টি স্কুলের ম্পোট ২৭১টি কেন্দ্রে ১৯২৯৭৯ জন পরীক্ষায় অংশগ্রহন করেছে। এর মধ্যে নিয়মিত পরীক্ষার্থীর সংখ্যা ছিল ১ লাখ ৬৪ হাজার ৯৯৭ জন এবং পাশ করেছে ১ হাজার ৩৭ হাজার ৬৪৭ জন। জিপিএ ৫ প্রাপ্ত নিয়মিত ছাত্র ছাত্রীর সংখ্যা ১২ হাজার ২৪ জন। মোট জিপিএ ৫ পেয়েছে ১২ হাজার ৮৬জন। ছাত্রদের তুলনায় ছাত্রীদের পাশের হার বেশী। ছাত্রদের পাশের হার ৮১.২২শতাংশ এবং ছাত্রীদের পাশের হার ৮৪.৩২শতাংশ। জিপিএ ৫ পেয়েছেন ছেলেদের মধ্েয ৬৩২৬ জন এবং ছাত্রীদের মধ্েয ৫৭৬০জন। 
এবারে শতভাগ পাশকৃত স্কুলের সংখ্যা ১২২টি।একজনও পাশ করেনি এরকম স্কুলের সংখ্যা মাত্র ১টি। এবারের এসএসসি পরীক্ষায় মোট অনুপস্থিত ছিল ১১৫৮জন পরীক্ষার্থী। 
দিনাজপুর মাধ্যমিক ও উচ্চ মাধ্যমিক শিক্ষা বোর্ড কর্তৃক প্রকাশিত ফলাফলের পরিসংখ্যানে বোর্ডের চেয়ারম্যান প্রফেসর মোঃ আবু বক্কর সিদ্দিক জানান, সরকার ঘোষিত তথ্য প্রযুক্তি সেবা সাধারন মানুষের দ্বারে পৌঁছে দেবার অঙ্গীকার বাস্তবায়নের লক্ষ্য ওয়েবসাইট,ই মেইল,ও এসএমএস এর মাধ্যমে সকল পরীক্ষার্থী ও প্রতিষ্ঠানে ২০২০সালের এসএসসি পরীক্ষার ফলাফল পৌঁছে দেবার ব্যবস্থা করা হয়েছে।
উল্লেখ্য, গত ৫ মার্চ এসএসসি পরীক্ষা সমাপ্ত হলেও বৈশ্বিক করোনা ভাইরাসের কারনে এবারে এসএসসির ফল প্রকাশ কিছুটা বিলম্ব হয়েছে।

এসএসসি পরীক্ষায় উত্তীর্ণ মেধাবীদের হুইপ ইকবালুর রহিম এমপির শুভেচ্ছা ও অভিনন্দন

এসএসসি পরীক্ষায় উত্তীর্ণ মেধাবীদের  হুইপ ইকবালুর রহিম এমপির শুভেচ্ছা ও অভিনন্দন




 দিনাজপুর প্রতিনিধি ॥ দিনাজপুর সদর আসনের সংসদ সদস্য ও জাতীয় সংসদের হুইপ ইকবালুর রহিম ২০২০ সালের এসএসসি পরীক্ষায় উত্তীর্ণ মেধাবীদের শুভেচ্ছা ও অভিনন্দন জানিয়ে এক বিবৃতিতে বলেন , বিশ্বমানের মানুষ হতে না পারলে তথ্য প্রযুক্তির এই যুগে কোন মুল্য নেই। এসএসসির এই ফলাফল জীবন গড়ার যাত্রা শুরু হল। এই যাত্রাকে কাজের লাগোতে হবে। সকল প্রকার দুর্ণীতি মাদকদ্রব্য ও অপরাধ মুলক কাজ থেকে দুরে থাকতে হবে। সমাজে ভাল মানুষের সাথে নিজেকে ভাল মানুষ হিসেবে গড়ে তুলতে হবে। আজকের এই মেধাবীরাই একদিন রাষ্ট্র ক্ষমতার কর্ণধার হবে।  জাতির জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের স্বপ্নের সোনার বাংলা বিনির্মানে এবং বঙ্গবন্ধু কন্যা প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার ভিশন-২০৪১ এ উন্নত বাংলাদেশ বিনির্মানের কারিগর হিসেবে নিজেদেরকে  জ্ঞাণ, বিজ্ঞান ও আধুনিক প্রযুক্তিতে গড়ে তুলতে হবে। তিনি বলেন, দেশের এই দুর্যোগকালে এসএসসির এই ফলাফল নিয়ে ঘরে থেকে পরিবারের সাথে আনন্দ উপভোগ করার আহবান জানান। তিনি সকলের মঙ্গল কামনা করেন এবং দুর্যোগকালীন করোনা ভাইরাস পরিস্থিতির মধ্যেও এসএসসির ফল প্রকাশের জন্য প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা, শিক্ষামন্ত্রণালয় ও সংশ্লিষ্ট সকলের প্রতি ধন্যবাদ ও কৃতজ্ঞতা জানান।

স্বাস্থ্য বিধি মেনে চলেই আমাদের স্বাভাবিক কর্মকান্ড পরিচালনা করতে হবে

স্বাস্থ্য বিধি মেনে চলেই আমাদের স্বাভাবিক  কর্মকান্ড পরিচালনা করতে হবে




দিনাজপুর প্রতিনিধি ॥ ৩১ মে রোববার  দিনাজপুর কলেক্টরেট স্কুল এন্ড কলেজ মাঠ প্রাঙ্গণে দিনাজপুর এরিয়া প্রোগ্রাম, ওয়াল্ড ভিশন বাংলাদেশ, কোভিড-১৯ ইমার্জেন্সি রেসপোন্স প্রকল্পের আওতায় মোবাইল মানি ট্রান্সফারের মাধ্যমে উপকারভোগী কর্মহীন মানুষের মাঝে নগদ অর্থ বিতরন করা হয়। 
এপিসি ম্যানেজার অনুকূল চন্দ্র বর্মন এর সভাপতিত্বে প্রধান অতিথি হিসেবে অর্থ বিতরণ কার্যক্রমে বক্তব্য রাখেন জেলা প্রশাসক মোঃ মাহমুদুল আলম। বিশেষ অতিথি হিসেবে বক্তব্য রাখেন কালেক্টরেট স্কুল এন্ড কলেজের প্রধান শিক্ষক মোঃ রাহিনুর ইসলাম, শহর উন্নয়ন কমিটি মিশন রোডের সভানেত্রী মোছাঃ হালিমা খাতুন। সঞ্চালকের দায়িত্ব পালন করেন ওয়ার্ল্ড ভিশন বাংলাদেশ দিনাজপুর অফিসের পিও এন্টিনা দাস। জেলা প্রশাসক মোঃ মাহমুদুল আলম বলেন, এই করোনা ভাইরাসে সবচেয়ে বেশী ঝুঁকির মধ্যে রয়েছে শিশু ও বৃদ্ধ মানুষরা। তাদেরকে সচেতন করে তোলাই হচ্ছে আমাদের কাজ। স্বাস্থ্য বিধি মেনে চলেই আমাদের স্বাভাবিক কর্মকান্ড পরিচালনা করতে হবে। সভাপতির বক্তব্যে এপিসি ম্যানেজার অনুকূল চন্দ্র বর্মন বলেন আমরা পর্যায়ক্রমে ৩১২ জনকে নগদ অর্থ সহযোগিতা করছি। ৩টি ইউনিয়নে ২২৫ জন এবং ১টি পৌরসভায় ৮৭ জনকে এই অর্থ প্রদান করা হচ্ছে। প্রতিজন উপকারভোগী পাচ্ছেন ৩হাজার ৫৫ টাকা ৫০ পয়সা (বিকাশের খরচ সহ)।

এস.এস.সি,দাখিল সমমানের পরীক্ষায় উত্তীর্ণ সকল পরীক্ষার্থীদেরকে ছাত্র লীগ নেতার অভিনন্দন

এস.এস.সি,দাখিল সমমানের পরীক্ষায় উত্তীর্ণ সকল পরীক্ষার্থীদেরকে ছাত্র লীগ নেতার  অভিনন্দন






নিউজ ডেস্কঃ যশোর জেলার চৌগাছা উপজেলার সকল এসএসসি ও দাখিল  সমমানের উত্তীর্ণ  শিক্ষার্থীদেরকে পাশাপোল ইউনিয়ন ছাত্র লীগের সাধারণ সম্পাদক মোঃ সবুজ হোসেন শুভেচ্ছা ও অভিনন্দন জ্ঞাপন করলেন। 
সকল শিক্ষার্থীদের মঙ্গলকামনাও করেছেন তিনি।

পুকুর থেকে দুই শিশুর লাশ উদ্ধার!

পুকুর থেকে দুই শিশুর লাশ উদ্ধার!



সম্রাট হোসেন শৈলকুপা (ঝিনাইদহ)উপজেলা প্রতিনিধিঃ  ঝিনাইদহ সদর উপজেলার বানিয়াকান্দর গ্রামের একটি পুকুর থেকে রোববার দুপুরে সাফিয়া খাতুন (৬) ও মাহিদ হোসেন (৫) নামে দুই শিশুর লাশ উদ্ধার করেছে পুলিশ। তাদেরকে পানিতে চুবিয়ে হত্যা করা হতে পারে বলে প্রাথমিক ভাবে মনে করছে পুলিশ।


 
পুলিশ নিহত দুই সন্তানের মা মনিরাকে গ্রেফতার করেছে। সাফিয়া ও মাহিদ বানিয়াকান্দর গ্রামের কৃষক নজরুল ইসলাম ও মনিরা খাতুন দম্পতির সন্তান। স্থানীয় ইউপি মেম্বর সুজন গনমাধ্যমকে জানান, রোববার সকালে সাফিয়া ও মাহিদকে নিয়ে গোসল করতে যায় তার মা মনিরা খাতুন (৪০)। বাড়ি ফিরে মনিরা প্রতিবেশি রাবেয়া খাতুন নামে এক মহিলাকে জানায় তার দুই সন্তানকে সে পুকুরে রেখে এসেছে। মনিরার অসংলগ্ন কথাবর্তার পর রাবেয়া খাতুনসহ লোকজন পুকুরে কাদায় পুতে রাখা অবস্থায় দুই ভাই বোনের মৃতদের উদ্ধার করে।

করোনার আপডেট

করোনার আপডেট




নিউজ ডেস্কঃ 

গত ২৪ ঘন্টায় বাংলাদেশে ১১৮৭৬
জনের নমুনা পরীক্ষা করে নতুন করে
২৫৪৫ জন সনাক্ত
মোট সনাক্ত ৪৭১৫৩ জন
নতুন করে আরো মৃত্যু ৪০ জন
মোট মৃত্যু ৬৫০ জন
নতুন করে সুস্থ ৪০৬ জন
মোট সুস্থ ৯৭৮১ জন

শহীদ জিয়াউর রহমান এর ৩৯ তম শাহাদাৎ উপলক্ষে সরকারী এম এম আলী কলেজ ছাত্রদলের উদ্যোগে বৃক্ষ রোপন কর্মসৃচী পালন

শহীদ জিয়াউর রহমান এর ৩৯ তম শাহাদাৎ উপলক্ষে সরকারী এম এম আলী কলেজ ছাত্রদলের উদ্যোগে  বৃক্ষ রোপন কর্মসৃচী পালন



 ডা.এম.এ.মান্নান,টাংগাইল জেলা প্রতিনিধি: বাংলাদেশ জাতীয়তাবাদী দল(বিএনপি)'র প্রতিষ্ঠাতা চেয়ারম্যান, বাংলার রাখাল রাজা, শহীদ রাষ্ট্রপতি জিয়াউর রহমান বীরউত্তম'র ৩৯ তম শাহাদাৎ বার্ষিকী উদযাপন ২০২০ খ্রি. উপলক্ষে 
কেন্দ্রীয় কর্মসূচী'র অংশ হিসেবে টাঙ্গাইল জেলা ছাত্রদলের নির্দেশনায় সরকারি এম এম আলী কলেজ শাখার ছাএদলের সংগ্রামী  সভাপতি, রাজপথ লড়াকু সৈনিক ও মেধাবী ছাত্রনেতা মো. আরিফিন রানা ও সাধারন সম্পাদক মো.হাসান আলীর নেতৃত্বে কলেজ শাখা ছাত্রদলের উদ্যোগে  কলেজ ক্যাম্পাসে গত ৩০ মে রোজ শনিবার ২০২০ খ্রি. বৃক্ষ রোপন কর্মসূচী পালন করা হয়।    বৃক্ষ রোপন কর্মসৃচী পালন কালে কলেজ ছাত্রদল সভাপতি মো.আরিফিন রানা বলেন, শহীদ রাষ্ট্রপতি  জিয়াউর রহমান সারাটা জীবনই এদেশের মাটি ও মানুষের জন্য কাজ করে গেছেন। দেশের স্বাধীনতা যুদ্ধ থেকে শুরু করে দেশের যে কোন সঙ্কটকালীন মুহূর্তে তিনি শক্ত হাতে হাল ধরেছেন। কৃষি, অর্থনীতিতে দিয়েছিলেন শক্তিশালী ভিত্তি যার ওপর পরবর্তীতে দেশ দাঁড়িয়েছে। তার সেই নীতি আদর্শ ধারণ করে দেশের মানুষের জন্য রাজনীতি করছেন বিএনপি চেয়ারপারসন বেগম খালেদা জিয়া ও ভারপ্রাপ্ত চেয়ারম্যান তারেক রহমান। মহান সেই নেতার ৩৯ তম শাহাদাতবার্ষিকীতে  ছাত্রদলের নেতাকর্মীরা সারাদেশে বৃক্ষরোপন কর্মসূচি পালন করেছে এবং আমরা সরকারি এম এম আলী কলেজ ছাত্রদল বৃক্ষ রোপন কর্মসৃচী হাতে নিয়ে তা বাস্তবায়ন করতে পেয়ে মহান আল্লাহ দরবারে শুকুরিয়া আদায় করছি, আলহামদুলিল্লাহ। 
ছাত্রনেতা মো.আরিফিন রানা আরো বলেন, বাংলাদেশ জাতীয়তাবাদী ছাত্রদল সব সময় ছাত্রদের কল্যাণে, দেশ ও জাতির জন্য কাজ করে আসছে।এবার এমন একটা পরিস্থিতিতে শহীদ রাষ্ট্রপতি  জিয়াউর রহমানের ৩৯ তম শাহাদাত বার্ষিকী পালিত হচ্ছে যখন করোনা ভাইরাস এবং ঘুর্ণিঝড় আমপানের কারণে মানুষ অসহায়। এই সময়ে আমরা খাদ্যসামগ্রী বিতরণের পাশাপাশি দেশকে সবুজায়ন করার লক্ষে ফলজ ও বনজ গাছ রোপন করছি। বৃক্ষ রোপন কর্মসৃচীতে উপস্থিত ছিলেন  টাঙ্গাইল জেলা ছাত্র দলের সহ ক্রিড়া সম্পাদক মো.ইসলাম বাবু, ছাত্রদল নেতা জুলকার নাঈম শিশির প্রমুখ।

শেরপু‌রে পানির অভাবে শত শত একর জমিতে বোরো চাষাবাদ হচ্ছে না

শেরপু‌রে পানির অভাবে শত শত একর জমিতে বোরো চাষাবাদ হচ্ছে না



 নিউজ ডেস্কঃ  
‌শেরপুর জেলার শ্রীবরদী উপ‌জেলার গা‌রো পাহা‌ড়ের পাদ‌দে‌শে পানির অভাবে বোরো চাষাবাদ হচ্ছে না উপজেলার শত শত একর কৃষি জমিতে। প্রত্যেক বছর কৃষকেরা নিজস্ব অর্থায়নে সমুস্য‌রি নদী‌তে বাঁধ দিয়ে পানি তুললেও গত ২ বছর থে‌কে নদীর পা‌নি ধী‌রে ধী‌রে নি‌চে নে‌মে যাওয়া‌তে নদীর পা‌নি আর এ‌দি‌কে আ‌সতে পা‌রে না। এর কারণ হি‌সে‌বে নদী‌তে বালু তু‌লে নদীর পা‌নি অস্বাভা‌বিক নি‌চে নে‌মে যাওয়া‌কে দায়ী কর‌ছেন কৃষকরা।

জানা গেছে, উপজেলার ২নং রাণী‌শিমূল ইউনিয়নে অবস্থিত মালা‌কোচা গ্রা‌মের (জেঁাকগা‌রি) মা‌ঠে প্রায় ২৫০ একর জমিতে প্রত্যেক বছর পৌষ মাসে বোরো চাষ শুরু হয় এবং মাঘ মাসে বোরো চারা রোপন ক‌রে, আর বৈশাখ মা‌সে এই  ধান কা‌টে তারা। কিন্তু এ বছর পানির অভাবে প্রায় ২০০ একর জ‌মি‌তে বোরো চাষ করতে পা‌রে‌নি কৃষকরা। 

স‌রেজ‌মি‌নে দেখা যায়, মালা‌কোচা সরকারী প্রাথ‌মিক বিদ্যালয় থে‌কে উত্ত‌রে পাহা‌রের পাদ‌দেশ পর্যন্ত প্রায় ২০০ একর জ‌মি অনাবাদি হি‌সে‌বে প‌রে আ‌ছে। কৃষক‌দের সা‌থে কথা ব‌লে জানা যায়, এই  মা‌ঠে ছোট পাম বা সাধারণ মে‌শিন দি‌য়ে ভূগর্ভস্থ পা‌নি উ‌ঠেনা। প্র‌তিবছর সমুস্য‌রি নদীর পা‌নি দি‌য়ে বো‌রো আবাদ করা হয়। কিন্তু গত বছর থে‌কে নদীর পা‌নি আর বঁাধ দিলেও উ‌ঠেনা। খাল থে‌কে মে‌শিন দি‌য়ে কিছু জ‌মি আবাদ করা হ‌লে‌ও যথা সম‌য়ে পা‌নি দি‌তে পা‌রে‌নি ব‌লেও অ‌ভি‌যোগ কৃষক‌দের।

এ ব্যাপা‌রে কৃষক আকবর আলী ব‌লেন, 'এই  মা‌ঠে আমার ২ একর জ‌মি প‌রে আ‌ছে। পা‌নির অভা‌বে বো‌রো আবাদ কর‌তে পা‌রি‌নি। শুধু আমন ধান আবাদ কর‌ছিলাম। শুধু আমার নয় আমার ম‌তো আ‌রো অ‌নেকজ‌নের মাথায় হাত। তি‌নি আ‌রো ব‌লেন, অ‌নে‌কে খাল থে‌কে মে‌শিন দি‌য়ে কিছু জ‌মি আবাদ করলেও যথা সম‌য়ে পা‌নি দি‌তে  পা‌রে‌নি। আর সাম‌নের বছর নদীর পা‌নি আ‌রো আস‌বে না। সরকার আমা‌দের মা‌ঠে একটা ডিপ মে‌শিন দি‌লে  আমা‌দের ভা‌লো হ‌তো।'

কৃষক আসমত মিয়ার সা‌থে কথা ব‌লে জানা যায়, তি‌নি ব‌লেন, 'এই  মা‌ঠে ছোট মে‌শিন বা মটর দিয়ে পা‌নি উ‌ঠেনা। তাই এ‌তো জ‌মি অনাবাদী প‌রে আ‌ছে। ডিপ মে‌শিন দি‌লে এখা‌নে প্রায় ২৫০ একর জ‌মি ভা‌লোভা‌বে বো‌রো আবাদ করা যা‌বে।'

এ ব্যাপা‌রে মালা‌কোচা গ্রা‌মের উপ সহকারী কৃ‌ষি অ‌ফিসার আব্দুল হা‌কিম ব‌লেন, এই  মা‌ঠে পূ‌র্বে নদী বাধঁ দি‌য়ে বো‌রো আবাদ কর‌তো; কিন্ত‌ু  এখন নদীর পা‌নি না  আসা‌তে অ‌নেক জ‌মি অনাবাদী র‌য়ে‌ছে।

রাণী‌শিমূল ইউ‌নিয়‌নের চেয়ারম্যান  মাসুদ রানা ব‌লেন, ' আমার এলাকা‌তে আ‌গে থে‌কে পা‌নির এমন সমস্যা । পূ‌র্বে নদীর পা‌নি দি‌য়ে বো‌রো আবাদ করা হ‌তো; এখন নদীর পা‌নি ক‌মে যাওয়া‌তে অ‌নেক জ‌মি‌তে বো‌রো আবাদ হয় না। এর স্থায়ী সমাধা‌নের ব্যবস্থা কর‌তে হ‌বে।'

এ ব্যাপা‌রে শ্রীবরদী উপ‌জেলা বিএডিসির সহকারী প্রকৌশলী মেহেদী আল বা‌কী ব‌লেন, 'সেই  জায়গা‌তে কো‌নো নদী নেই; নদী থাক‌লে নদী থে‌কে সেচ এর পা‌নি সরকারীভা‌বে একটা ব্যাবস্থা করা যেত। এখন সরকা‌রিভা‌বে ডিপ মে‌শি‌নের কো‌নো অনু‌মোদন নেই, ত‌বে কেউ যদি ব্য‌ক্তিগত খর‌চে দি‌তে চায়; তাহ‌লে অবস্থা বি‌বেচনা ক‌রে বিএডিসি থে‌কে অনুম‌তি নি‌য়ে দি‌তে পার‌বে।'

উপজেলা নির্বাহী অ‌ফিসার (ইউএনও) নিলুফা আক্তার ব‌লেন, 'এ বিষয়‌টি আমার জানা ছিলনা। এর আ‌গে কেউ আমা‌কে জানাই নি। আ‌মি বিষয়র‌টি সম্প‌র্কে খোঁজ নি‌য়ে ব্যবস্থা নিব।'

রাজারহাটে করোনা সন্দেহে ৬ ব্যক্তির নমুনা সংগ্রহ"

রাজারহাটে করোনা সন্দেহে ৬ ব্যক্তির নমুনা সংগ্রহ"




মোঃইয়ামিন সরকার আকাশ।
কুড়িগ্রাম প্রতিনিধি 

কুড়িগ্রামে রাজারহাট উপজেলার উমর মজিদ ইউনিয়নের, রাজমাল্লীর হাট ফাজিল মাদ্রাসা মাঠে গতকাল ৩০ মে ২০২০ইং রোজ শনিবার সকাল ১১:৩০ মিনিটে করোনা সন্দেহে ৬ জনের নমুনা সংগ্রহ করা হয়েছে। করোনা সন্দেহে ৬ জনের নমুনা সংগ্রহ করে রাজারহাট হাসপাতালের স্বাস্থ্য বিভাগের মেডিকেল টিম। এর মধ্যে উমর মজিদ ইউনিয়নের ঘুমারুঘুমশীতলা গ্রামের, আলামিন (২৮) সিদ্দিকুর রহমান (২৭) রাসেল (২৫) এজাজুল (২৭) মমিনা বেগম (২৬) আলিজান (২৫) মোট ৬ জনের নমুনা সংগ্রহ করেছেন।জানা গেছে, এরা সবাই কয়েকদিন ধরে জ্বর, মাথা ব্যথা ও সর্দি-কাশিতে আক্রান্ত থাকায় উপজেলা স্বাস্থ্য বিভাগ তাদের পরিবারকে হোম কোয়ারান্টাইনে থাকার পরামর্শ দেন।

 কিন্তু এলাকাবাসীর আতঙ্ক ও ভয়ের কারণে তাদের নমুনা সংগ্রহ করে প্রেরণ করা হয়েছে।উপজেলা স্বাস্থ্য বিভাগ ও সিভিল সার্জন সূত্রে জানা যায়, উমর মজিদ ইউনিয়নের ঘুমারুঘুমশীতলা গ্রামে ঢাকা ফেরত ৬ জনের  জ্বর, মাথা ব্যথা ও সর্দি,কাশিতে আক্রান্ত হয়ে বাসায় অবস্থান করছিলেন। এ খবর শোনা মাত্র শনিবার সকালে উপজেলা স্বাস্থ্য বিভাগ ঐ ৬ জনের নমুনা সংগ্রহ করতে যায়। সেইসাথে তাদের সহ তার পরিবারকে হোম কোরান্টাইনে থাকার নিদের্শনা দেয়া হয়। রাজারহাট উপজেলার উমর মজিদ ইউনিয়নে ঐ গ্রামের ঢাকা ফেরত ৬ জনের লক্ষণ দেখা দেয়ায় তাদের রক্তের নমুনা সংগ্রহ করা হয়। শনিবার সকালে। তাদের নমূনা সংগ্রহ করে রংপুর মেডিকেল কলেজে প্রেরণ করা হবে বলে জানান তিনি।

উপজেলা স্বাস্থ্য বিভাগের আঃ লতিফ সরকার এস আই জানান, সংবাদ পাওয়ার পর থেকে আমরা তার পরিবারের সঙ্গে যোগাযোগ করি এবং হোমকোয়ারেন্টাইনে থাকার পরামর্শ দেই। তিনি জ্বর, সর্দি ও কাশিতে আক্রান্ত হলেও অবস্থার অনেকটা উন্নতি হয়েছে। তিনি আরো বলেন, জনমনে আতঙ্ক দূর করতে শনিবার সকালে মেডিকেল টিম তার নমুনা সংগ্রহ করে পরীক্ষার জন্য রংপুর মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে পাঠানো হবে।এ ব্যাপারে মোঃ আনোয়ারুল ইসলাম এমপি টি ল্যাব, আব্দুল জলিল স্বাস্থ্য পরিষদ জানান, শনিবার ৬ জনের রক্তের নমুনা সংগ্রহ করে রংপুর মেডিকেল কলেজে পাঠানো হয়। তবে তাদের রিপোর্ট পজিটিভ কিংবা নেগেটিভ যাই হোক তা আইইডিসিআরে পাঠালে সেখান থেকে আমাদের উপজেলা স্বাস্থ্যবিভাগে জানানো হবে।

এসময় উপস্থিত ছিলেন, আব্দুল লতিফ এস আই, মোঃ আনোয়ারুল ইসলাম এমপি টি ল্যাব, আব্দুল জলিল স্বাস্থ্য পরিষদ মোঃ আবুল কালাম আজাদ ড্রাইভার, মনশা চন্দ্র এজেন্ট প্রমূখ।

করোনা আক্রান্ত ব্যক্তির ধান কেটে দিলেন স্বেচ্ছাসেবক লীগ সভাপতি নির্মল গুহ

করোনা আক্রান্ত ব্যক্তির ধান কেটে দিলেন স্বেচ্ছাসেবক লীগ সভাপতি নির্মল গুহ




নিজস্ব প্রতিবেদক : ঢাকার দোহার উপজেলায় করোনা আক্রান্ত এক ব্যক্তির ক্ষেতের ধান কেটে দিয়েছেন বাংলাদেশ আওয়ামী স্বেচ্ছাসেবক লীগের সভাপতি নির্মল রঞ্জন গুহ। শনিবার (৩০ মে) সকাল থেকে নেতাকর্মীদের সাথে নিয়ে ক্ষেত থেকে ধান কেটে ঘরে পৌঁছে দেন তিনি।

জানা যায়, গত ২৪ মে দোহার উপজেলার বিলাসপুরে লাভলু শিকদার নামে এক ব্যক্তির করোনা সনাক্ত হয়। ওই ঘটনার পর কৃষাণরা আক্রান্ত ব্যক্তির ক্ষেতের ধান কেটে দিতে অপারগতা প্রকাশ করে। এ নিয়ে গত কয়েকদিন ধরে ক্ষেতের পাকা ধান নিয়ে দুশ্চিন্তায় পড়ে যান লাভলু শিকদার। বিষয়টি সমাজিক যোগাযোগ মাধ্যম ফেসবুকের মাধ্যমে জানতে পেরে করোনা আক্রান্ত ওই ব্যক্তির ধান কেটে দিতে ইচ্ছা পোষন করেন কেন্দ্রীয় স্বেচ্ছাসেবক লীগের সভাপতি নির্মল রঞ্জন গুহ।

শনিবার (৩০ মে) সকাল থেকে স্থানীয় নেতাকর্মীদের সাথে নিয়ে ক্ষেতে ধান কাটার কাজে নেমে পড়েন নির্মল গুহ। ক্ষেত থেকে ধান কেটে করোনা আক্রান্ত ব্যক্তির বাড়িতে পৌঁছে দেন তারা।

নির্মল রঞ্জন গুহ বলেন, যে কোন দূর্ভোগ-দূর্যোগে সেবক হিসেবে পাশে থাকাই স্বেচ্ছাসেবক লীগের অন্যতম নীতি। করোনা আক্রান্ত ব্যক্তি সমাজের কোন অপরাধী নয়, তারা আমাদের সমাজেরই অংশ, আমাদেরই কারো না কারো স্বজন। কষ্টে ফলানো ধান নিয়ে ওই ব্যক্তির দুর্দশার কথা জেনে আমি কোন দ্বিধাদ্বন্দ ছাড়াই এগিয়ে এসেছি। স্বেচ্ছাসেবক লীগের নেতাকর্মীদের সাথে নিয়ে ক্ষেতের পুরো ধান কেটে ঘরে পৌঁছে দিচ্ছি। আমি নিজে এ কর্মকান্ডে উপস্থিত থেকেছি নেতাকর্মীদের প্রেরণা দেয়ার জন্য। আমরা চাই, স্বেচ্ছাসেবক লীগের প্রতিটি কর্মকান্ড হোক জনবান্ধব।

সিরাজগঞ্জ হাসপাতালের বাথরুমে টিএলসির লাশ উদ্ধার

সিরাজগঞ্জ হাসপাতালের বাথরুমে টিএলসির লাশ উদ্ধার



 মাসুদ রানা সিরাজগঞ্জ জেলাপ্রতিনিধিঃ
সিরাজগঞ্জের তাড়াশ উপজেলা ৫০ শয্যা বিষিষ্ট হাসপাতালের যক্ষা ও কুষ্ঠ নিয়ন্ত্রণ কার্যালয়ের প্রধান (টিএলসি) রফিকুল ইসলাম (৪৫) এর মৃত্যু হয়েছে।
রবিবার সকালে তাড়াশ উপজেলার পরিষদের মধ্যে ব্যাচেলর কোয়াটারের বাথরুম থেকে মৃত্যু দেহ উদ্ধার করা হয়। মৃত্যু টিএলসি রফিকুল ইসলামের গ্রামের বাড়ি রংপুর সদরের রামবল্লাভপুর মহল্লায় ও তাড়াশ হাসপাতালের যক্ষা ও কুষ্ঠ নিয়ন্ত্রন কার্যালয়ের প্রধান হিসেবে কর্মরত ছিলেন।
তাড়াশ উপজেলা স্বাস্থ্য ও পরিবার পরিকল্পনা কর্মকর্তা জামাল মিয়া শোভন বিষয়টি নিশ্চিত করে জানান, সকাল আটটার দিকে খবর পেয়ে সিরাজগঞ্জ সিভিল সার্জন মোঃ জাহিদুল ইসলামকে জানানো হয়েছে। তিনি আরো জানান, মৃত্যুদেহের করোনা নমুনা নেয়া হবে ও ময়নাতদন্তের জন্যর মর্গে পাঠানোর জন্য পুলিশকে বলা হয়েছে।
ব্যাচেলর কোয়াটারের টিএলসির কাজের বুয়া মছিরোন বিবি জানান, সকালে রান্না করতে এসে দেখি গেট ভেতর থেকে বন্ধ রয়েছে। অনেক ডাকাডাকি করে কোন সাড়া শব্দ না পেয়ে আশেপাশের লোকজনকে ডেকে জানাই।
এ সময় উপজেলা জনস্বাস্থ্য অফিসের লোকজন ও পাশের মসজিদের মায়াজ্জিন এসে তারাও ডাকাডাকি করেন। একপর্যায়ে ভেতর থেকে কোন সাড়াশব্দ না পেয়ে মসজিদের মোয়াজ্জিন আবুল কালাম মই দিয়ে ছাঁদে উঠে সিড়ি বেয়ে নেমে গেট খুলে দেয়। পরে ভেতরের বাথরুমের মধ্যে টিএলসি রফিকুল ইসলামের মৃত দেহ পড়ে থাকতে দেখে উপজেলা হাসপাতালের স্বাস্থ্য ও পরিবার পরিকল্পনা কর্মকর্তা জামাল মিয়া শোভনকে জানান তারা।
তাড়াশ থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মাহবুবুল আলম বলেন, এখন পর্যন্ত কোন অবিযোগ পায়নি। মৃত্যু ব্যক্তির পরিবারের সঙ্গে কথা বলে জানা গেছে অতিরিক্ত ডাইবেটিক এর কারণে মারা যেতে পারে। লাশ উদ্ধার করে ময়নাতদন্তের জন্য মর্গে প্রেরণ করা হয়েছে।

বীরগঞ্জে ৫ম শ্রেনীর ছাত্রীকে ধর্ষন করে খালু, থানায় মামলা দায়ের

বীরগঞ্জে ৫ম শ্রেনীর ছাত্রীকে ধর্ষন করে খালু,  থানায় মামলা দায়ের




দিনাজপুর প্রতিনিধিঃ দিনাজপুরের বীরগঞ্জে ঈদের দাওয়াত খেতে গিয়ে ৫ম শ্রেনীর ১ স্কুল ছাত্রীকে বাড়ীতে একা পেয়ে জোর পূর্বক ধর্ষন করে নিজ খালু। থানায় মামলা দায়ের, লম্পট খালু সাত্তার পলাতক। 
উপজেলার মোহাম্মদপুর ইউনিয়নের সাতোর ইউনিয়নের চকপাতলা গ্রামের পাবনাপাড়ার আজিম উদ্দিনের পুত্র গরুর দালাল সালামের ভাই লম্পট আব্দুস সাত্তার ঈদের পরের দিন (২৬ মে) সকালে ছোট ভায়রা রশুলপুর ঢাকাইয়া পাড়া এলাকার মৃত আমজাদ মুন্সির পুত্র দিনমুজুর মিনহাজ উদ্দিনের বাড়ীতে ঈদের দাওয়াত খেতে গিয়ে ৫ম শ্রেনীর স্কুল ছাত্রী ভাগনী কে বাড়ীতে একা পেয়ে জোর পূর্বক ধর্ষন করে। এসময় প্রতিবেশীরা ছুটে এসে ঘটনাটি বুঝার আগেই লম্পট খালু ধর্ষক আব্দুস সাত্তার বাড়ী হতে পালিয়ে যায়। অভাবের তাড়নায় মা রানী বেগম মেয়েকে বাড়ীতে রেখে গাজীপুরের কোনাবাড়ীতে গারর্মেন্স শ্রমিকের চাকুরী করে আর বাবা মিনহাজ দিনমুজুরের কাজ করে। 
সংবাদ পেয়ে একদল সাংবাদিক ২৮মে ভিকটিমের বাড়ীতে গেলে ভিকটিম ও তার বাবাকে পাওয়া যায়নী, এসময় গারর্মেন্স শ্রমিক মা রানী বেগম জানায়, আমি অভাবের কারনে গাজীপুরের কোনাবাড়ীতে ১টি গারর্মেন্স শ্রমিকের চাকুরী করি। সংবাদ পেয়ে অতি কষ্টে এইমাত্র হতে বাড়ীতে আসলাম, আমিও মেয়ে ও তার বাবাকে বাড়ীতে পাইনি। সবসময় মোবাইল ফোনে তাদের সাথে যোগাযোগ রেখেছিলাম। এখন হয়তো তারা বীরগঞ্জে গেছে মোবাইলে পাচ্ছি না। 
এসময় তিনি ধর্ষনের বিচার কামনা করে বলেন, এ ঘটনা ধামাচাপা দেওয়ার জন্য আমার বড় বোন (ধর্ষক সাত্তারের স্ত্রী) খদেজা ও মেয়ের খালা নুরজাহান আমাদের বাড়ীতে এসে চুপচাপ থাকার হুমকী দিয়ে মেয়েটিকে মারধর করে, যা আমার মেয়ে আমাকে মোবাইল ফোনে জানায়। 
তিনি আরো বলেন, ধর্ষক সাত্তারের বড় ভাই গরুর দালাল সালাম, সাত্তারকে লুকিয়ে রেখে মামলা না করার জন্য বিভিন্ন ভাবে ভয়, ভিতি, হুমকী, প্রলোভন দিয়ে যাচ্ছে ও ততবীর করে বেড়াচ্ছে। 
ইউপি চেয়ারম্যন গোপাল দেব শর্মা জানায়, মিনহাজ বাড়ী ফিরে মেয়ে ও প্রতিবেশীদের মুখে ঘটনা শুনে স্থানীয় ইউপি সদস্য আইনুল ইসলামকে জানালে সে আমাকে ঘটনাটি জানায়, আমি মেয়েটি সহ তার অভিভাবকদের থানায় যাওয়ার পরামর্শ দেই। 
পরিশেষে ৩০ মে সন্ধ্যায় মেয়ের মায়ের মোবাইল ফোনের মাধ্যমে মেয়ে ও তার মায়ের সাথে কথা হলে ভিকটিম জানায়, আমি টাকার বিনিময়ে কোন আপোষ মিমাংসা চাইনা। আইনগত কঠোর বিচার চাই। 
বীরগঞ্জ থানার এসআই মহিউদ্দিন জানায়, থানায় ধর্ষন মামলা হয়েছে। যার নং-৭, তারিখ- ২৭/০৫/২০২০ইং এবং তাকে মেডিক্যালে পরিক্ষার জন্য পাঠানো হয়েছিলো। ধর্ষক সাত্তার পলাতক রয়েছে।

স্বাস্থ্যবিধি মেনে চাঁপাইনবাবগঞ্জ থেকেই গেল বনলতা

স্বাস্থ্যবিধি মেনে চাঁপাইনবাবগঞ্জ থেকেই গেল বনলতা




চাঁপাইনবাবগঞ্জ প্রতিনিধি :প্রায় ২ মাস বন্ধ থাকার পর সরকারি নির্দেশনায় স্বাস্থ্যবিধি মেনে রোববার সকাল ৬ টার সময় চাঁপাইনবাবগঞ্জ রেলস্টেশন থেকে ঢাকার উদ্দেশ্যে ছেড়ে গেছে বনলতা এক্সপ্রেস ট্রেন। ধারণ ক্ষমতার অর্ধেক যাত্রী নিয়ে ট্রেনটি ছেড়ে যায়। এ সময় ট্রেনের স্টাফ ও যাত্রীদের যথাযথ নিয়ম মেনেই চলাচল করতে দেখা গেছে।

চাঁপাইনবাবগঞ্জ রেল স্টেশনের সহকারী স্টেশন মাস্টার মোহাম্মদ ওবাইদুল্লাহ জানান, সরকারি নির্দেশনা মোতাবেক সকল টিকিট অনলাইনের মাধ্যমে বিক্রি করা হয়েছে। ট্রেন ছাড়ার ঘোষণার মাত্র ৭ মিনিটের মধ্যেই চাঁপাইনবাবগঞ্জে বরাদ্দকৃত সকল টিকিট বিক্রি হয়ে যায়।
স্টেশন মাস্টার আরো জানান, স্টেশনে অতিরিক্ত কোন যাত্রী প্রবেশ করতে দেয়া হয়নি। আমরা শনিবার থেকেই নিরাপদ দূরত্ব বজায় রেখে স্বাস্থ্যবিধি মেনে যাত্রী পরিবহনের জন্য প্রচারণা চালিয়ে ছিলাম।

অপরদিকে বিভিন্ন কাজে যাওয়া যাত্রীরা ট্রেন সাভিস চালুর জন্য সরকারকে ধন্যবাদ জানান। যাত্রীরা সরকারের এ উদ্যোগকে স্বাধুবাদ জানিয়ে ট্রেন চলাচল স্বাভাবিক রাখার অনুরোধ জানান।

মাধবপুরে হাওরে হাঁসের খামার

মাধবপুরে হাওরে হাঁসের খামার




লিটন পাঠান হবিগঞ্জ জেলা প্রতিনিধি

হবিগঞ্জের মাধবপুরে হাওরে বাণিজ্যিক ও ব্যক্তিগতভাবে হাঁস পালনে ব্যাপক সম্ভাবনা দেখা দিয়েছে। কৃষক পর্যায়ে কমবেশি প্রতিটি ঘরেই সীমিত আকারে 

হাঁস পালন হয়ে থাকে। পাঁচ বছর ধরে বিশাল হাওরজুড়ে ৪০টির মতো হাঁসের খামার গড়ে উঠেছে। দিন দিন এর খামার বেড়েই চলেছে। ডিমের চাহিদা ও দাম 

বেড়ে যাওয়ায় অনেক বেকার লোক অন্য খামারিদের অনুসরণ করে হাঁসের খামার গড়ে তুলেছে বৈশাখে বোরো ধান কাটার সঙ্গে সঙ্গেই এলাকার খামারিরা হাঁসের বাচ্চা কেনা।

শুরু করেন। বাচ্চা রাখার জন্য হাওর এলাকায় উঁচু ভূমিতে ছোট খামার তৈরি করা হয়। মাধবপুর উপজেলার পৌর এলাকায়, শাহজাহানপুর, জগদীশপুর, 

বাঘাসুরা, বুল্লা, ছাতিয়াইন, আন্দিউড়া, নোয়াপাড়া ভাটি এলাকায় হাঁসের খামার রয়েছে বেশি। এসব ইউনিয়নের হাজার হাজার একর জমি বর্ষা মৌসুমে পানির 

নিচে তলিয়ে যায়। তখন এসব ভূমিতে কোনো ফসল উৎপাদন হয় না। এসব পতিত হাওরে হাঁসের খামার গড়ে তোলে অনেকেই সফল হয়েছেন। হাঁসের খামার 

গড়ে তুলতে তেমন পুঁজির প্রয়োজন হয় না। স্বল্প পরিসরে অল্প পুঁজিতে এসব খামার গড়ে তোলা যায়। খামারিদের সঙ্গে কথা বলে জানা গেছে, ছোট পর্যায়ে 

একটি হাঁসের খামার গড়ে তুলতে ২০ থেকে ৫০ হাজার টাকা পুঁজি হলেই চলে। মাধবপুর উপজেলায় ছোট-বড় ৪০টির বেশি হাঁসের খামার রয়েছে, যা থেকে 

প্রতিদিন ডিম সংগ্রহ করে পুষ্টির চাহিদা মেটানো হচ্ছে। মাধবপুর উপজেলার গোয়ালনগর গ্রামের সফল খামারি মোঃ জাহির মিয়া জানান, বৈশাখ মাসে বাচ্চা 

তুলে হাঁসের খামার গড়ে তুলেন। তার খামারে এখন ছয় শতাধিক হাঁস রয়েছে। ছয়-সাত বছর ধরে তিনি হাওর এলাকায় এ খামার পরিচালনা করছেন। হাওরে 

হাঁস পালনে তেমন খরচ নেই। প্রাকৃতিকভাবেই হাঁস শামুকসহ অন্যান্য খাবার নিজেরা খেয়ে থাকে। তবে মাঝে মধ্যে গম ও ধান খাবার হিসেবে দিতে 

হয়। তিনি আরও জানান, প্রতি হালি ডিম বিক্রি হচ্ছে ৩০ থেকে ৩৫ টাকা। বাচ্চা পালনের পর দুই-তিন মাস পর থেকেই ডিম দেওয়া শুরু হয়। একটি ছোট 

খামারে দুইজন শ্রমিক হলেই হাঁসের লালন-পালন ও দেখভাল করতে পারেন। জগদীশপুর ইউনিয়নের চেয়ারম্যান শফিকুল ইসলাম বলেন, মাধবপুরের 

ভাটি এলাকায় পতিত জায়গায় বর্ষা মৌসুমে হাঁস পালন করে আর্থিকভাবে লাভবান হওয়ার পাশাপাশি ডিমের পুষ্টির চাহিদা মেটানো সম্ভব। কারণ বর্ষা 

মৌসুমে এসব জমি পানির নিচে এমনিতেই পড়ে থাকে। এসব জমি কৃষকের কোনো কাজে আসে না। সরকারিভাবে খামারিদের হাতে-কলমে 

প্রশিক্ষণ দিয়ে হাঁসের খামার সম্প্রসারণ করলে এলাকার খামারিরা আরও বড় পরিসরে হাঁসের খামার গড়ে তুলে লাভবান হতেন। মাধবপুর উপজেলা কৃষি 

কর্মকর্তা সাইফুল ইসলাম জানান, বর্ষা মৌসুমে এসব জমিতে ধান উৎপাদন হয় না। বিস্তীর্ণ এলাকা পানির নিচে তলিয়ে থাকে তাই হাঁসের খামার সম্প্রসারণে।

কৃষি বিভাগের কোনো বাধা নেই। মাধবপুর উপজেলা উপ-সহকারী প্রাণিসম্পদ কর্মকর্তা ডাঃ আবুল কাশেম জানান, মাধবপুরে বিভিন্ন হাওর ও ছোট 

ছোট খালে ৪০টির বেশি হাঁসের খামার রয়েছে। উপজেলা প্রাণিসম্পদ অফিসের পক্ষ থেকে খামারিদের সব রকম পরামর্শ ও হাঁসের চিকিৎসা সুবিধা ও ওষুধ 

দেওয়া হয়। তবে কৃষকদের সরকারিভাবে কৃষি ঋণসহ কারিগরি ও প্রযুক্তিগত সহযোগিতা করলে হাওরে হাঁস পালন দেশে নতুন মডেল হতে পারে।

মিরসরাই তিন মাদক ব্যবসায়ী গ্রেপ্তার!

মিরসরাই তিন মাদক ব্যবসায়ী গ্রেপ্তার!




মিরসরাই প্রতিনিধি
চট্টগ্রামের মিরসরাই উপজেলায় পৃথক দুটি অভিযানে তিন মাদক ব্যবসায়ীকে গ্রেপ্তার করেছে মিরসরাই থানা পুলিশ। শনিবার (৩০মে) রাতে উপজেলার সুফিয়া রোড এলাকা থেকে ২৫পিস ইয়াবা সহ মাদক ব্যাবসায়ী আকবর( ৩৫) কে গ্রেপ্তার করে পুলিশ। অন্য একটি অভিযানে ৪১ পিস ইয়াবাসহ আবুতোরাব বড়তলা এলাকা থেকে আরো দুজনকে গ্রেপ্তার করা হয়। তসরা হলেন, মায়ানী এলাকার বেলায়েত হোসেন আরিফ(৩০), ইব্রাহিম(৩৫)।

জানা গেছে, আবুতোরাব বড়তলা এলাকায় ইয়াবা বিক্রি করছে এমন সংবাদে স্থানীয় ছাত্রলীগের নেতাকর্মীরা গিয়ে তাদের আটক করে। পরে থানা পুলিশের হাতে তাদের সোপর্দ করে।

আটকের বিষয়ে জানতে চাইলে মায়ানী ইউনিয়ন ছাত্রলীগের সভাপতি ওমর ফারুক বলেন, মায়ানীকে মাদকমুক্ত করতে মায়ানী ইউনিয়ন ছাত্রলীগ প্রত্যেক ওয়ার্ডে কঠোরভাবে ভাবে অবস্থান নিচ্ছে। মাদক কারবারে যে বা যারা জড়িত তাদের বিরুদ্ধে ছাত্রলীগ অবস্থান করবে।

তাদের বিরুদ্ধে মিরসরাই থানায় মাদক আইনে মামলা করা হয়েছে বলে জানান এস আই আবুল কাশেম।

রাষ্ট্রপতি জিয়াউর রহমানের ৩৯ তম শাহাদাৎ বার্ষিকী উপলক্ষে টাঙ্গাইল জেলা যুবদলের উদ্যোগে কোরআন খতম ও দোয়া অনুষ্ঠিত

রাষ্ট্রপতি জিয়াউর রহমানের ৩৯ তম শাহাদাৎ বার্ষিকী উপলক্ষে টাঙ্গাইল জেলা যুবদলের উদ্যোগে কোরআন খতম ও দোয়া অনুষ্ঠিত



ডা.এম.এ.মান্নান,টাংগাইল জেলা প্রতিনিধি :  শহীদ রাষ্ট্রপতি জিয়াউর রহমানের ৩৯ তম শাহাদাৎ বার্ষিকী উপলক্ষে কেন্দ্রীয় কর্মসূচীর অংশ হিসাবে টাঙ্গাইল জেলা জাতীয়তাবাদী যুবদলের উদ্যোগে গত ৩০ মে ২০২০ খ্রি. দিনব্যাপী কোরআন খতম ও দোয়া মাহফিল অনুষ্ঠিত হয়। দোয়া মাহফিলে উপস্থিতি ছিলেন জেলা যুবদলের আহবায়ক, যুবনেতা ও বিশিষ্ট সমাজসেবক সাবেক তুখোর ছাত্রনেতা জ্বনাব আশরাফ পাহেলী, সিনিয়র যুগ্ম আহবায়ক জ্বনাব রাশেদুল আলম রাশেদ, জেলা বিএনপির দপ্তর সম্পাদক জ্বনাব মির্জা শাহীন,জেলা যুবদলের যুগ্ম আহবায়ক মাহমুদ হাসান টিটন,জেলা শ্রমিকদল নেতা মনিরুল হক মনির,জেলা ছাত্রদল নেতা সম্রাট পাহেলী,জেলা মৎস্যজীবী দলের সাধারন সম্পাদক মো.মোতালেব হোসেন, শহর যুবদলের আহবায়ক কবিরুজ্জামান কবির,সদস্য সচিব ইকবাল হোসেন প্রমুখ।

আহত উপজেলা যুবলীগ সভাপতিকে দেখতে গেলেন জেলা যুবলীগের সেক্রেটারি ও স্থানীয় সাংসদ, প্রতিবাদ সভা অনুষ্ঠিত

আহত উপজেলা যুবলীগ সভাপতিকে দেখতে গেলেন জেলা যুবলীগের সেক্রেটারি ও স্থানীয় সাংসদ, প্রতিবাদ সভা অনুষ্ঠিত




শামিম উদ্দিন চাঁপাইনবাবগঞ্জ প্রতিনিধি :
হামলায় আহত শিবগঞ্জ উপজেলা যুবলীগের সভাপতি রফিকুল ইসলাম কে উন্নত চিকিৎসার জন্য রাজশাহী মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে শনিবার সন্ধ্যায় নেয়া হলে সেখানে দেখতে যান চাঁপাইনবাবগঞ্জ ১ আসনের সাংসদ ডাক্তার শামিল উদ্দিন আহমেদ শিমুল ।এর আগে একই দিন দুপুরে আহত যুবলীগ সভাপতি কে শিবগঞ্জ স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে দেখতে যান চাঁপাইনবাবগঞ্জ জেলা যুবলীগের সাধারণ সম্পাদক মো. আমানুল্লাহ বাবু। এদিকে এ ঘটনায় তীব্র প্রতিবাদ জানিয়ে প্রতিবাদ সভা করা হয় জেলা যুবলীগের পক্ষ থেকে। সভায় সুষ্ঠু বিচার দাবি জানানো হয়।

জেলা যুবলীগের সভাপতি সামিউল হক লিটন এর নির্দেশনায় সাধারণ সম্পাদক আমানুল্লাহ বাবু আহত রফিকুল ইসলামের চিকিৎসা ও সার্বিক বিষয়ে খোঁজ নেন। এ সময় উপস্থিত ছিলেন, যুবলীগ নেতা লেনিন প্রামাণিকসহ যুবলীগের বিভিন্নস্তরের নেতৃবৃন্দ।

উল্লেখ্য, চাঁপাইনবাবগঞ্জের শিবগঞ্জ উপজেলা যুবলীগের সভাপতি অধ্যাপক মো. রফিকুল ইসলামকে ৩/৪ জন অজ্ঞাত ছিনতাইকারী এলোপাতাড়ি কিল, ঘুসি ও পিটিয়ে আহত করে। এ সময় মানিব্যাগ, মোবাইল ফোন ছিনিয়ে নিয়ে যায় ছিনতাইকারীরা।
শুক্রবার রাত সাড়ে ১০ টার দিকে শিবগঞ্জ উপজেলার দূর্লভপুর উচ্চ বিদ্যালয়ের সামনে এ ঘটনা ঘটে। পরে স্থানীয় এলাকাবাসী আহত অবস্থায় রফিকুলকে উদ্ধার করে শিবগঞ্জ উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ভর্তি করা হয়। এ ঘটনায় মামলা দায়েরের প্রস্তুতি চলছে বলে জানা গেছে।

বাঁশখালীতে শহীদ জিয়াউর রহমানের ৩৯ তম শাহাদাত বার্ষিকী পালন

বাঁশখালীতে শহীদ জিয়াউর রহমানের ৩৯ তম শাহাদাত বার্ষিকী পালন




মোঃ আরিফুল ইসলাম 
চট্টগ্রাম, প্রতিনিধি।
বহুদলীয় গণতন্ত্রের প্রবাক্তা বাংলাদেশ জাতীয়তাবাদী দল বিএনপির প্রতিষ্টাতা শহীদ প্রেসিডেন্ট জিয়াউর রহমানের ৩৯ তম শাহাদাত বার্ষিকী উপলক্ষে বাঁশখালী পৌরসভা বিএনপি ও অঙ্গসংগঠণের উদ্যোগে খতমে কোরআন ও দোয়া মাহফিলের আয়োজন করা হয়।
৩০ মে বিকাল ৪ টায় পৌর সভাস্হ অস্হায়ী কার্যালয়ে এ প্রোগ্রাম অনুষ্ঠিত হয়।
এতে প্রধান অথিতি হিসাবে উপস্থিত ছিলেন 
দক্ষিণ জেলা বিএনপির আহবায়ক কমিটির সদস্য,  বাঁশখালী পৌরসভা বিএনপির সাবেক সভাপতি ও সাবেক মেয়র আলহাজ্ব কামরুল ইসলাম হোসাইনি, আরো উপস্থিত ছিলেন পৌরসভা বিএনপির সাবেক সাংগঠনিক সম্পাদক শাহাদাত হোসেন আজগর, পৌরসভা যুব দলের সাবেক সভাপতি মোস্তাক আহমদ,সাবেক সাধারণ সম্পাদক আবু সালেহ মণি, যুগ্ম সম্পাদক  সরওয়ার উদ্দিন,আজিজুর রহমান, পৌরসভা ছাত্রদলের সাবেক সভাপতি জিয়াউল হাসান হোসাইনী, সাবেক সাধারণ সম্পাদক ওসমান গনী মুজাহিদ, সাবেক সাংগঠনিক সম্পাদক জাহাঙ্গীর আলম, যুগ্ম সম্পাদক রিদুয়ান আজিম, আমিনুর রহমান, শফিউল করিম টিটু,
আলওয়াল কলেজ ছাত্রদলের সাবেক সাধারণ সম্পাদক মাসুম হাসান রুবেল, এনামুল হক হারুন, মোশাররফ হোসেন,
যুবনেতা  ছাবের, মিশকাতুর রহমান মাহিন প্রমুখ।