"""করোনা সতর্কতায়,কুড়িগ্রামের বিনোদন স্পট ফাঁকা

"""করোনা সতর্কতায়,কুড়িগ্রামের বিনোদন স্পট ফাঁকা


"
 মোঃইয়ামিন সরকার আকাশ।
কুড়িগ্রাম প্রতিনিধিঃ
-মহামারীর করোনা ভাইরাসের ২ মাস পার হতে চললো,এর মাঝেই গতকাল থেকে সারাদেশে উদযাপিত হচ্ছে মুসলমানদের ধর্মীয় উৎসব পবিত্র ঈদুল ফিতর । প্রতিবছরের মতো ঈদ উদযাপিত হলেও এবারের ঈদ উদযাপিত হচ্ছে একটু ভিন্নভাবে । করোনার কারণে এবারের ঈদে বাড়তি সতকর্তা নিয়েছে প্রশাসন । কুড়িগ্রাম জেলার প্রধান প্রধান বিনোদন স্পটগুলোতে নেই জনসমগম, নেই দর্শনার্থীদের আনা-গোনা । জেলার ধরলা সেতু,ধরলা পার্ক,জিয়া পুকুর,শিশু পার্কসহ অন্যান্য বিনোদনগুলো স্পটগুলোতে ঘুরে দেখা যায় এমন চিত্র । এছাড়াও মোটর বাইকের মহড়া কিংবা গাড়িতে গাড়িতে মিউজিক বক্সের গান বাজানো,এসব কোনটাই চোখে পড়েনি এবারের ঈদে । তবে গুটি কয়েক মানুষ নিজ এলাকা থেকে অন্য এলাকায় যাচ্ছেন কুশল বিনিময় করতে,তাদের দেখা যায় স্বাস্থ্যবিধি মেনেই বের হতে ।

করোনার কারনে বাইরে না ঘুরে অনেকে নিজের পরিবারকে সময় দিয়ে বাড়িতেই উদযাপন করছে পবিত্র ঈদ ।লোকজন বিনোদন স্পটগুলোতে যেন ভিড় করতে না পারে,স্বাস্থ্যবিধি না মেনে বের হয় ,সেইসব বিষয়গুলো গতকাল থেকে মনিটরিং করছে কুড়িগ্রাম জেলা পুলিশ । পুলিশের চেকপোস্টের কারণে কিংবা করোনার সতকর্তার কারনে কুড়িগ্রামের মানুষ বিনোদনের জায়গাগুলোতে ভিড় করছে না বলেও মনে করেন এ জেলার অনেক বাসিন্দা । মোঃ এ এস সাহেদ নামের এক যুবক বলেন,”প্রতি ঈদে তো বন্ধুদের সাথে বের হই, এবার না হয় বাড়ির আপনজনদের একটু বেশি সময় দিলাম ।.”

এদিকে,ধর্ম মন্ত্রনালয়ের নির্দেশনা মেনে কুড়িগ্রাম জেলা শহরের মসজিদগুলোতে স্বাস্থ্যবিধি মেনে ঈদের জামাত অনুষ্ঠিত হলেও,জেলার চরগুলোতে দেখা গেছে অন্যচিত্র । সেখানে স্বাস্থ্যবিধি না মেনে উন্মোক্ত মাঠে ঈদের জামাতের নামায পড়তে দেখা গেছে । চরগুলো বাদে জেলার অন্যান্য উপজেলার শহরগুলোর মসজিদে মানা হয়েছে স্বাস্থ্যবিধি ।

কুড়িগ্রাম জেলার পুলিশ সুপার মোহাম্মদ মহিবুল ইসলাম খান বলেন,”আমরা গতকাল ঈদের দিন থেকে বাড়তি চেকপোস্ট বসিয়ে সার্বক্ষনিক বিনোদন স্পটগুলো নজরদারি করা হচ্ছে । অযধা কেউ ভীড় না করতে পারে,সে বিষয়ে আমরা সর্তক আছি।

মাগুরার শ্রীপুরে আঃলীগের২গ্রুপের সংঘর্ষ/ লুুুটপাট-এমপি শিখরের এলাকা পরিদর্শন

মাগুরার শ্রীপুরে আঃলীগের২গ্রুপের সংঘর্ষ/ লুুুটপাট-এমপি শিখরের এলাকা পরিদর্শন



মো:রাসেল হোসেন , শ্রীপুর (মাগুরা) প্রতিনিধি : মাগুরার শ্রীপুর উপজেলায় গতকাল ঈদের মাঠে টাকা তোলাকে কেন্দ্র করে  সংঘর্ষ ও লুটপাটের ঘটনায় পরিদর্শন করতে আসেন মাগুরা ১ আসনের সংসদসদস্য জনাব সাইফুজ্জামান শিখর পরিদর্শন কালে তিনি বলেন দোষীদের বিরুদ্ধে অবশ্যই ব্যবস্থা নেওয়া হবে ।এ ঘটনায় শ্রীপুর থানা পুলিশ বাদী হয়ে গত কাল একটি মামলা দায়ের করেন।

মাগুরার শ্রীপুর উপজেলায় ঈদের
নামাজ শেষে টাকা তোলাকে কেন্দ্র করে সৃষ্ট
বিরোধের জেরে উপজেলার ৩ নং শ্রীকোল
ইউনিয়নের খোর্দ্দরহুয়া ও সরইনগর গ্রামে অন্তত:
শতাধিক বাড়িঘরে ব্যাপক ভাংচুর ও লুটপাট ও
হামলায় ৫ পুলিশসহ অন্তত: ২০ জন নারী-পুরুষ আহত
ঘটনায় ১৯১ জনের নাম উল্লেখ করে ও অজ্ঞাত আরো
৮/৯শত লোকের নামে মামলা দায়ের করেছে শ্রীপুর
থানা পুলিশ। গতকাল রাতেই এ মামলা দায়ের
হয়েছে বলে আজ ২৬ মে বিকেলে নিশ্চিতকরেছে
শ্রীপুর থানা ওসি মোঃমাহাবুবুর রহমান। আহত
গ্রামবাসীদের মধ্যে ৪ জনকে মাগুরা সদর
হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে। পরিস্থিতি
নিয়ন্ত্রণে আনতে পুলিশ শতাধিক শর্টগানের গুলি
বর্ষন করেছে । ২৫ মে সোমবার এ ঘটনা ঘটে। আজ ২৬
মে মাগুরার এমপি সাইফুজ্জামান শিখর ক্ষতি গ্রস্থ
এলাকা পরিদর্শন করেছে বলে জানা গেছে।
প্রকাশ - এলাকায় আধিপত্য বিস্তারকে কেন্দ্র করে
শ্রীকোল ইউনিয়ন শাখা আওয়ামীলীগের সভাপতি
আমীর হোসেন মোল্ল্যার সাথে স্থানীয় আবু বক্কার
মোল্ল্যা, হাফিজুর রহমান, কনা, শাহিনুর রহমান ও
আবু সাঈদ মন্ডল-গং এর দীর্ঘদিন ধরে বিরোধ চলে
আসছিলো। এরই জের ধরে ২৫ মে সোমবার এই ভাংচুর 
ও লুটপাটের ঘটনা ঘটে। আওয়ামীলীগ সভাপতি
আমীর মোল্ল্যার প্রতিপক্ষ স্থানীয় সামাজিক
দলের এই পাঁচ নেতা শ্রীকোল ইউনিয়নের বর্তমান
চেয়ারম্যান ও শ্রীপুর উপজেলা আওয়ামীলীগের
সাংগঠনিক সম্পাদক এম.এম.মোস্তাসিম বিল্লাহ
সংগ্রামের নেতৃত্বে চলে বলে অনেকে জানিয়েছেন।
ঘটনার বিষয়ে সরইনগর গ্রামের শ্রীকোল ইউনিয়ন
শাখা আওয়ামীলীগের সভাপতি মো: আমীর আলী
মোল্লা বলেন - খোর্দ্দরহুয়া গ্রামের ঈদগাহে ঈদের
নামাজ শেষে টাকা তোলা ও নাম ঘোষনার সময়ে
হঠাৎ আমার প্রতিপক্ষ আবু বক্কার তার লোকজন দিয়ে
আমার সমর্থক নুরুল হোসেন, ওসমান, আবু, হারেজ সহ
বেশ কয়েকজন লোককে পিটিয়ে আহত ও কুপিয়ে জখম
করে। এর কিছুক্ষন পরেই শ্রীকোল, পূর্ব শ্রীকোল,
খোর্দ্দরহুয়া, রামনগর, মিনগ্রামসহ-এই পাঁচ গ্রামের
৩/৪ হাজার লোক দেশীয় অস্ত্রসস্ত্র নিয়ে পূর্ব
পরিকল্পনা অনুযায়ী আমাদের গ্রামে এসে আমার
নিজের বাড়ি সহ আমার সমর্থকদের শতাধিক
বাড়িঘরে ব্যাপক ভাঙচুর ও লুটপাট চালিয়েছে।
তবে রিরোধীপক্ষের স্থানীয় সামাজিক দলের
নেতা আবু বক্কার মোল্ল্যা বলেন, তিনি কোন
ঝামেলা করেননি। বরং আমীর মোল্লার লোকজনই
ঈদের মাঠে টাকা তোলা নিয়ে ঝামেলা
বাঁধিয়েছে।
শ্রীকালে ইউনিয়ন পরিষদের ১ নং ওয়ার্ড সদস্য মো:
ফরিদুল ইসলাম বলেন -প্রথমে ঝামেলা হলো
খোর্দ্দরহুয়া গ্রামে। কিন্তু কিছুক্ষন পরেই এক দেড়
কিলোমিঠার দূরের সরইনগর গ্রামের ইউনিয়ন
আওয়ামীলীগের সভাপতি আমীর আলী মোল্লার
সমর্থক নেকবর মোল্ল্যা, নজরুল শেখ, জহুর ফকির,
আহম্মদ ফকির, লিয়াকত মন্ডল, রেজাইল মোল্ল্যা,
আজিজ মোল্ল্যা, খালেক মোল্ল্যা সহ শতাধিক
বাড়িঘরে ব্যাপক ভাংচুর ও লুটপাট চালানো হয়। এ
সময় বেশ কয়েকটি বাড়ির গরু ছাগল ও লুট করা হয়।
তিনি দাবি করে বলেন, চেয়ারম্যান সংগ্রাম নিজে
হেলমেট মাথায় দিয়ে সরইনগর গ্রামে এসে এই
ভাংচুরের নেতত্ব দিয়েছেন। ক্ষতিগ্রস্ত সকলে
আমীর মোল্লার সমর্থক ।
এদিকে শ্রীকোল ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান ও
শ্রীপুর উপজেলা শাখা আওয়ামীলীগের সাংগঠনিক
সম্পাদক এম.এম. মোস্তাসিম বিল্লাহ সংগ্রাম-এর
সাথে ফোনে কথা বললে এক প্রশ্নের জবাবে তিনি
জানান--আমি আমাদের মসজিদে নামাজ শেষ করে
বাড়িতে এসে দেখি মোবাইলে অনেকগুলো মিসকল
উঠে আছে, পরক্ষনেই পুলিশ কর্মকর্তার ফোনের মাধ্যমে
গন্ডগোলের খবর জানতে পারি।আরেক প্রশ্নের
জবাবে তিনি জানান-- আমি সারাদিনের ভীতরে ঐ
এলাকায় যায়নি। ।
শ্রীপুর থানার ওসি মো: মাহাবুবুর রহমান বলেন- চার-
পাঁচটি গ্রাম থেকে একযোগে প্রচুর লোক এসে সরইনগন
গ্রামে এসে হামলা করে ভাংচুর করেছে।
পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আনতে পুলিশের শতাধিক
শর্টগানের গুলি ছুড়েছে । দুর্বৃত্তদের ছোড়া ইটের
আঘাতে আমার পাঁচ পুলিশ সদস্য আহত হয়েছে।
বর্তমানে সেখানে অতিরিক্ত পুলিশ মোতায়েন করা
হয়েছে। পরিস্থিতি অনেকটায় নিয়ন্ত্রণে ৮ জনকে
আটক করা হয়েছে , লুটকৃত ৫টি গরু উদ্ধার করা হয়েছে ,
১৯১জনের নামসহ অজ্ঞাত আরো ৮ /৯ শত লোকের
নামে পুুুলিশের পক্ষ থেকে থানায় মামলা করা
হয়েছে -মামলা নং ১৬ তাং -২৫/০৫/২০২০ইং।

তারাকান্দা উপজেলা নির্বাহী অফিসার চিত্রা শিকারী বিদায় সংবর্ধনা অনুষ্ঠান

তারাকান্দা উপজেলা নির্বাহী অফিসার চিত্রা শিকারী বিদায় সংবর্ধনা অনুষ্ঠান



মিজানুর রহমান ইমন
তারাকান্দা (ময়মনসিংহ) প্রতিনিধিঃ

ময়মনসিংহের তারাকান্দা উপজেলা নির্বাহী অফিসার (ইউএনও) চিত্রা শিকারী ২৬ মে মঙ্গলবার বিকালে বদলী জনিত বিদায় সংবর্ধনা দেওয়া হয়েছে । উপজেলা পরিষদ সভা কক্ষে, উপজেলা পরিষদের আয়োজনে বিদায় সংবর্ধনা অনুষ্ঠানে গুরুত্বপূর্ণ বক্তব্য রাখেন তারাকান্দা উপজেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক, আলহাজ্ব মোঃ বাবুল মিয়া সরকার, উক্ত বিদায় সংবর্ধনা অনুষ্ঠানে সভাপতিত্ব করেন তারাকান্দা উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান আলহাজ্ব এডভোকেট ফজলুল হক, এ সময় উপস্থিত ছিলেন, তারাকান্দা উপজেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি শ্রী প্রদীপ কুমার চক্রবর্তী (রনু) ঠাকুর, সিনিয়র সহ সভাপতি মেজবাহ উল আলম রুবেল চৌধুরী, যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক, শামসুল আলম রাজু,  আজাহারুল ইসলাম সরকার আজাহার, শিক্ষা মানব উন্নয়ন বিষয়ক সম্পাদক, নুরুজ্জামান সরকার বকুল, ভাইস-চেয়ারম্যান, নজরুল ইসলাম নয়ন, মহিলা ভাইস চেয়ারম্যান সালমা আক্তার কাকন, তারাকান্দা উপজেলা যুবলীগের আহব্বায়ক, আব্দুল মান্নান, যুগ্ন আহব্বায়ক বিপ্লব চৌধুরী, তারাকান্দা উপজেলা স্বেচ্ছাসেবক লীগের সভাপতি, জুয়েল চৌধুরী, সাধারণ সম্পাদক, কাজল সরকার, তারাকান্দা উপজেলা ছাএলীগের সভাপতি, রাকিব হাসান মাজারুল, সাধারণ  সম্পাদক, শিবু চন্দ্র দাস, তারাকান্দা উপজেলা ক্রীড়া সংস্থার সাধারণ সম্পাদক, হযরত আলী তুষার, ইউনিয়ন চেয়ারম্যানদের মধ্যে উপস্থিত ছিলেন, আব্দুর জব্বার, মশিউর রহমান রিপন, মেজবাহ উদ্দিন, এবাদুর হোসেন তালুকদার রুনু, জিয়াউল হক জিয়া,রেজাউল করিম দুদু, আব্দুস ছালাম মন্ডল, তারাকান্দা তরুণ যুব সংঘ সভাপতি, মিজানুর রহমান ইমন প্রমুখ তারাকান্দা উপজেলা আওয়ামী লীগের অঙ্গসংগঠন ও সামাজিক সংগঠনের নেতৃবৃন্দ ।

সিরাজগঞ্জ যমুনা নদীতে ঝড়ো হাওয়ায় নৌকা ডুবে নিহত ২ নিখোঁজ ৩০ জন

সিরাজগঞ্জ যমুনা নদীতে ঝড়ো হাওয়ায়  নৌকা ডুবে নিহত ২ নিখোঁজ ৩০ জন


 মাসুদ রানা সিরাজগঞ্জ জেলা প্রতিনিধিঃসিরাজগঞ্জের যমুনা নদীতে ঝড়ো হাওয়ার কবলে ধান কাটার শ্রমিকসহ কমপক্ষে ৬৭ জন যাত্রীবাহী নৌকা ডুবির ঘটনা ঘটেছে। এ ঘটনায় মাঝিসহ কমপক্ষে ৩৫ সাঁতরিয়ে প্রাণে রক্ষা পেলেও আরো কমপক্ষে ৩০ জন নিখোঁজ রয়েছেন। এদের মধ্যে অধিকাংশই ধান কাটার শ্রমিক।
এ মর্মান্তিক ঘটনায় যমুনা নদীর পাড়ে এখন শোকের মাতম। পুলিশ ও জনতার উদ্ধার অভিযানে এক শিশুসহ ২ জনের লাশ উদ্ধার করা হয়েছে।
তারা হলেন, বেলকুচি উপজেলার গয়নাকান্দি গ্রামের মৃত তহির ফকিরের ছেলে ধান কাটার শ্রমিক পাষাণ ফকির (৬০) ও একই এলাকার কলাগাছি গ্রামের শ্রমিক শামিম উদ্দিনের ছেলে নাইম (৬)। এনায়েতপুর থানার ওসি মাসুদ পারভেজ এ তথ্য নিশ্চিত করেছেন।
তিনি আমাদের প্রতিনিধিকে জানান, এনায়েতপুর থানার নৌঘাট থেকে মঙ্গলবার সকাল পৌনে ১১ টার দিকে ধান কাটার অধিকাংশ শ্রমিকসহ কমপক্ষে ৭০ জন যাত্রী নিয়ে ইঞ্জিন চালিত একটি নৌকা সিরাজগঞ্জের চৌহালী উপজেলার চরাঞ্চলে যাওয়ার পথে সাড়ে ১১ টার দিকে উল্লেখিত স্থানে নৌকাটি ঝড়ো হাওয়ার কবলে পড়ে ডুবে যায়। এতে মাঝি ইব্রাহিমসহ (৩৭) কমপক্ষে ৩৫ জন যাত্রী সাঁতরিয়ে প্রাণে রক্ষা পেলেও কমপক্ষে ৩০ জন শ্রমিক ও যাত্রী নিখোঁজ রয়েছেন। তারা এনায়েতপুর, শাহজাদপুর ও বেলকুচি উপজেলার বিভিন্ন গ্রামের অধিকাংশই ধান কাটার শ্রমিক। পুলিশসহ স্থানীয় উদ্ধার অভিযানে ওই ২ জনের লাশ পাওয়া গেছে।
এদিকে অতিরিক্ত জেলা প্রশাসক (সার্বিক) ফিরোজ মাহমুদ, সংশ্লিষ্ট উপজেলা প্রশাসন ও  পুলিশ কর্মকর্তারা ঘটনাস্থলে পৌছেছেন এবং উদ্ধার কাজ তদারকি করছেন। অ
তিরিক্ত জেলা প্রশাসক (সার্বিক) বলেন, রাজশাহী ডুবুরী দল ইতিমধ্যেই রওনা দিয়েছেন। বিকেলেই তারা এই উদ্ধার কাজে যোগ দিবেন। পুলিশ সুপার হাসিবুল আলম (বিপিএম) বলেন, ঘটনাস্থলে একাধিক পুলিশ কর্মকর্তা পাঠানো হয়েছে এবং নিজে উদ্ধার কাজের মনিটরিং করছেন বলে তিনি উল্লেখ করেন।

কুমিল্লার মুরাদনগরেজাতীয় কবি কাজী নজরুলের ১২১তম জন্মবার্ষিকী পালন ভিন্নভাবে

কুমিল্লার মুরাদনগরেজাতীয় কবি কাজী নজরুলের ১২১তম জন্মবার্ষিকী পালন ভিন্নভাবে



শাহ আলম, কুমিল্লা ব্যুরো প্রধানঃ 

'আজো মধুর বাঁশরী বাজে
গোমতীর তীরে পাতার কুটিরে
আজো সে পথ চাহে সাঁঝে'-কাজী নজরুল ইসলামের এই গানের চরণেই
মূর্ত হয়ে  আছে  কুমিল্লার দৌলতপুরের
দৌলতখানার সেই পল্লীবালা কবি প্রিয়া
নার্গিসের বেদনার কথা। 
নার্গিস বাঁধনহারারা এই তরুণ কবি নজরুলকে বেঁধে ছিলেন প্রেমডোরে। সৃষ্টি
হয়েছে  বাংলা সাহিত্যে অগ্নিবীণা, সাম্যবাদী,  বিষের বাঁশি, চক্রবাক, সিন্ধুহিন্দোল, দোলন চাঁপার মতো অমর সব কাব্যকীর্তি। 
বাংলা সাহিত্যে ‘ধুমকেতু’ হয়ে আবির্ভূত হলেন কবি কাজী নজরুল ইসলাম।

১৯২১-১৯২৩ সালের মধ্যে কবি কাজী নজরুল ইসলাম কুমিল্লায় আসেন মোট ৫ বার এবং ১১ মাস অতিবাহিত করেন এই কুমিল্লায়।১৯২১ সালে ৬ এপ্রিল কুমিল্লার(তৎকলীন ত্রিপুরা)  মুরাদনগরে আলী আকবর খা’র সঙ্গে কবি নজরুল ইসলাম দৌলতপুর বেড়াতে আসেন।থাকেন ২মাস ১১দিন।আলী আকবর খাঁর ভাগ্নি দৌলতপুর গ্রামের মুন্সি বাড়ির আব্দুল খালেক মুন্সি সাহেবের মেয়ে সৈয়দা খাতুনের সঙ্গে কবি  বিবাহ বন্ধনে আবদ্ধ হোন।

কবি সৈয়দা খাতুন কে আদর করে ডাকতেন নার্গিস।নার্গিস কে উদ্দেশ্য করে কবি তার বন্ধু মোজাফ্ফর আহম্মদকে লিখেছেন 'এক অচেনা পল্লী বালিকার কাছে এত বিব্রত আর অসাবধান হয়ে পড়েছি যা কোন নারীর কাছে হইনি'।
সেই সৈয়দা নার্গিস আসার খানম ওরফে দুবরাজ ওরফে দুবি কবি নজরুলের প্রথম
পত্নী। ভাগ্যের নির্মম পরিহাস নজরুল - নার্গিসের বিবাহে টেকেনি। দৌলতপুর থেকে কুমিল্লার সেন পরিবারে ফিরে গিয়ে কবি প্রেমে পড়েন আরেক নারী আশালতা সেন গুপ্তা ওরফে প্রমীলার।যখানে নজরুল ৩ বছর অপেক্ষা করতে পারেননি অথচ নার্গিস  নজরুলকে ভালোবেসেছেন বলেই দীর্ঘ ১৬ বছর অপেক্ষা করে প্রেমের আরেক ইতিহাস সৃষ্টি করেন। দৌলতপুর হয়েছে প্রেমের অমরাবতী। 
কবিতীর্থ  খ্যাত দৌলতপুরে নজরুলের নানা স্মৃতির জড়িয়ে আছে।খাঁ বাড়ির পুকুরপাড়ের  বড়ো আমগাছ, কামরাঙা গাছ, খেলার মাঠ, পুকুরঘাট।নজরুল  আমগাছের তলায় দুপুরে শীতল পাটিতে বসে কবিতা ও গান রচনা করতেন।

নজরুলের কবিতায় গোমতী,  বুড়ি-আর্চি নদীর কথা কথা এসেছে। তবে সেই বুড়ি আর্চি নদী এখন আর নেই, খালে পরিণত হয়েছে।।

কবি শখ করে জাল কিংবা পলো দিয়ে পুকুরে মাছ ধরতেন। আমতলায় রাত দুপুরে মনভুলালো উদাস সুরে বাঁশি বাজাতেন। পাপড়ি খোলা'কবিতাটি এই গাছতলায় রচনা করেন নজরুল।আজ ২৫ শে মে প্রেম, সাম্য, দ্রোহ ও মানবতার কবি কাজী নজরুল ইসলামের ১২১ তম জন্মজয়ন্তী।বিগত বছর কবির জন্মদিনে দৌলতপুর নানা আয়োজনে দিনটি পালিত হলে ও কোভিড ১৯ করোনাভাইরাসের কারনে কোনো কর্মসূচি নিতে পারেনি প্রশাসন। গত ২৫ মে দৌলতপুরের খাঁ বাড়ির সেই ঐতিহাসিক আমগাছের গোড়ায় ফুল দিয়ে জাতীয় মহান এই কবির প্রতি শ্রদ্ধা নিবেদন করেন     মুরাদনগর উপজেলা প্রশাসন।

সাবেক কাউন্সিলর রাসেল’এর’পিতা ছাবের আহম্মেদ’র মৃত্যুতে ইপিজেড বিএনপির শোক শ্রদ্ধা নিবেদন

সাবেক কাউন্সিলর রাসেল’এর’পিতা  ছাবের আহম্মেদ’র মৃত্যুতে ইপিজেড বিএনপির শোক শ্রদ্ধা নিবেদন



ইপিজেড প্রতিনিধি
মোঃহাসান রিফাত

ইপিজেড থানাধীন ৩৯ নং ওয়ার্ড’র সাবেক কাউন্সিলর ও বিএনপি সভাপতি  সরফরাজ কাদের রাসেলের পিতা"ছাবের আহম্মেদ(৮৫)এর’মৃত্যুতে ইপিজেড থানা-৩৯ নং ওয়ার্ড বিএনপি,যুবদল-ছাত্রদল, স্বেচ্ছাসেবক দলের নেতৃবৃন্দরা শোক প্রকাশ করেছেন। 

সাইট পাড়া কবরস্থানে ২৪শে মে বাদে আসর শোক ও শ্রদ্ধা নিবেদনে উপস্থিত ছিলেন ইপিজেড থানা বিএনপির সিনিয়র সহ-সভাপতি মোজাদ বারেক,সিনিয়র যুগ্ন সম্পাদক-জাবেদ আনসারী,যুগ্ন সম্পাদক- মোঃআলী,সাংগঠনিক সম্পাদক-মোঃইমরান হোসেন,৩৯ নংওয়ার্ড বিএনপি সাঃসম্পাদক-মুজিবুর রহমান, সাংগঠনিক সম্পাদক-মোঃআলমগীর,মোঃশরীফ,থানা যুবদল নেতা জিয়াউর রহমান জিয়া,সুমন,ওয়ার্ড যুবদল নেতা  সাইফুর রহমান রনি,ছাত্রদলের সোহেল,আকিব জাবেদ সহ বিভিন্ন সংগঠনের নেতৃবৃন্দরা মরহুম ছাবের আহম্মেদ‘এর মৃত্যুতে  শোক প্রকাশ করেন।শোক ও শ্রদ্ধাজ্ঞলীতে   মোনাজাদ পরিচালনা করেন আলীশাহ্ মসজিদের মোয়াজ্জেম মাওলানা মুহাম্মদ আব্দুল গঁফুর।

উল্লেখ্য যে, তিনি গত ২২ মে শুক্রবার রাত্র  সাড়ে ১০টায়  বাধ্যক জনিত কারণে ইন্তেকাল করেন (ইন্নালিল্লাহি ...... রাজিউন)।

মহামারী করোনা ভাইরাস প্রতিরোধে টাংগাইলে হোমিওপ্যাথিক মেডিসিন আর্সেনিকাম এ্যালবাম ৩০ বিতরণ

মহামারী করোনা ভাইরাস প্রতিরোধে টাংগাইলে হোমিওপ্যাথিক মেডিসিন আর্সেনিকাম এ্যালবাম ৩০ বিতরণ


ডা.এম.এ.মান্নান                                নাগরপুর(টাংগাইল)প্রতিনিধি:
মহামারী করোনা ভাইরাস (কোভিড-১৯) মোকাবেলায় মাননীয় প্রধানমন্ত্রী জননেত্রী শেখ হাসিনার আহ্বানে এবং বাংলাদেশ হোমিওপ্যাথি বোর্ড এর সুযোগ্য চেয়ারম্যান ও হোমিও রত্ন ডা.দিলিপ কুমার রায়ের নির্দেশনায় বাংলাদেশের সকল হোমিওপ্যাথিক  রেজিস্টার্ড  চিকিৎসকবৃন্দ নিজেদের জিবনের ঝুঁকী নিয়ে মহামারী করোনা ভাইরাস  প্রতিরোধে সেবা প্রদান করে যাচ্ছেন।
এ লক্ষ্যে বাংলাদেশ হোমিওপ্যাথি বোর্ডের পক্ষ থেকে সারাদেশে বিভিন্ন জেলা-প্রশাসন, বিচার বিভাগীয় কর্মকর্তা ও কর্মচারী, পুলিশ-প্রশাসন, বিভিন্ন প্রতিষ্ঠান এবং সাধারণ জনমানুষের কাছে আর্সেনিকাম অ্যালবাম ৩০ ঔষধটি বিনামূল্যে বিতরণের ব্যাপক কর্মসূচি গ্রহণ করা হয়েছে। ভিডিও কনফারেন্সের মাধ্যমে টাঙ্গাইল জেলায় এই সেবামূলক কর্মসূচী শুভ উদ্বোধন ঘোষনা  করেন বাংলাদেশ হোমিওপ্যাথি বোর্ডের চেয়্যারম্যান ও হোমিও রত্ন  ডা. দিলীপ কুমার রায়। উদ্বোধনকালে উপস্থিত ছিলেন টাঙ্গাইল হোমিও মেডিকেল কলেজ ও হাসপাতালের অধ্যক্ষ ডা. শাহিদা আক্তার, ঢাকা বিভাগের বোর্ড সদস্য ও টাংগাইল হোমিও মেডিকেল কলেজের সহযোগী অধ্যাপক ডা. কায়েম উদ্দিন, বাংলাদেশ হোমিও বোর্ডের জাতীয় কল্যাণ ট্রাস্টের সভাপতি ও টাংগাইল হোমিও মেডিকেল কলেজ হাসপাতালের সহযোগী অধ্যাপক  ডা.মো.তোফাজ্জল হোসেন, টাঙ্গাইল হোমিওপ্যাথিক মেডিক্যাল কলেজের সহযোগী অধ্যাপক ডা. শাহাদৎ হোসেন বাবুল প্রমুখ। 
সেই সাথে ভিডিও কনফারেন্স  অনুষ্ঠানে যুক্ত হন বাংলাদেশ হোমিওপ্যাথি বোর্ডের রেজিস্ট্রার-কাম-সেক্রেটারি ডা. মো.জাহাঙ্গীর আলম, বোর্ড সদস্য ডা. শেখ মো. ইফতেখার উদ্দিন, ডা. আশিস শংকর নিয়োগী, ডা. এস এম মিল্লাত হোসেন, ডা. আনিসুর রহমান মিন্টু এবং বোর্ডের পরীক্ষা নিয়ন্ত্রক ডা. শহীদুল ইসলাম ভূঁইয়া।
উক্ত কর্মসূচির ধারাবাহিকতায় টাঙ্গাইল হোমিওপ্যাথিক মেডিক্যাল কলেজ ও হাসপাতাল তিনদিন ব্যাপী এই বিনামূল্যে ঔষধ বিতরণ কর্মশালা বাস্তবায়ন করছে। তিনদিন ব্যাপী এই কর্মশালায় টাঙ্গাইল হোমিওপ্যাথিক মেডিক্যাল কলেজ ও হাসপাতালের পক্ষ থেকে, বিচার বিভাগীয় কর্মকর্তা ও কর্মচারীদের পক্ষে ঔষধ গ্রহণ করেন টাঙ্গাইল অতিরিক্ত জেলা জজ, টাঙ্গাইল সার্কিট হাউজে জেলা প্রশাসনের পক্ষ থেকে ঔষধ গ্রহণ করেন অতিরিক্ত জেলা প্রশাসক (সার্বিক) জনাব মো.মোশারফ হোসেন এবং পুলিশ-প্রশাসনের পক্ষ থেকে ঔষধ গ্রহণ করেন টাঙ্গাইল জেলার পুলিশ সুপার সঞ্জিত কুমার রায়।
এছাড়া এই কর্মশালার অংশ হিসাবে টাঙ্গাইল প্রেসক্লাবে বিনামূল্যে হোমিও ঔষধ বিতরণ অনুষ্ঠান অনুষ্ঠিত হয়।
অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি ছিলেন টাঙ্গাইল জেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক, বাসাইল সখিপুরের মাননীয় সংসদ সদস্য জনাব জোয়াহেরুল ইসলাম জোয়াহের (ভিপি জোয়াহের), অনুষ্ঠানে সভাপতিত্ব করেন টাঙ্গাইল প্রেসক্লাবের সভাপতি সাংবাদিক নেতা মো.জাফর আহমদ এবং উপস্থিত ছিলেন প্রেসক্লাবের কর্মকর্তা ও সাংবাদিকবৃন্দসহ এই কর্মসূচীর উদ্যোক্তাবৃন্দ।

নতুন করে করোনায় আক্রান্ত ১১৬৬!

নতুন করে করোনায় আক্রান্ত ১১৬৬!

নিউজ ডেস্কঃ  
২৬/০৫/২০২০
গত ২৪ ঘন্টায় নতুন আক্রান্তঃ
১১৬৬জন
মৃত্যুঃ ২১জন
মোট মৃত্যুঃ ৫২২জন
মোট আক্রান্তঃ ৩৬৭৫১ জন
সুস্থঃ ২৪৫জন
মোট সুস্থঃ ৭৫৭৯ জন
২৪ ঘন্টায় নমুনা পরিক্ষাঃ ৫৪০৭ জন
ঘরে থাকুন,
সুস্থ থাকুন।

ধান মাড়াই মেশিনের নিচে পৃষ্ঠ হয়ে স্কুল ছাত্রের মৃত্যু

ধান মাড়াই মেশিনের নিচে পৃষ্ঠ হয়ে স্কুল ছাত্রের মৃত্যু

 

রাজশাহী ব্যুরো
 নাটোরের বড়াইগ্রামে ধান মাড়াই মেশিনের নিচে পৃষ্ঠ হয়ে  এক স্কুল ছাত্রের মৃত্যু হয়েছে।
মৃত  পিয়াস (১৬) উপজেলার জোনাইল ইউনিয়নের চামটা গ্রামের মোঃ খলিল হোসেনের ছেলে। সে জোনাইল এম এল উচ্চ বিদ্যালয়ের দশম শ্রেণির মানবিক বিভাগে পড়াশোনা করতো।

আজ মঙ্গলবার ভোর সাড়ে পাঁচটার দিকে ধান মাড়াই করার জন্য ইউনিয়নের ভিটা কাজিপুরের উদ্দেশ্যে পিয়াসসহ আরো দুইজন রওনা দেয়। চামটা বিলের ব্রিজে উঠার সময় ধান মাড়াই করার মেশিন নিয়ন্ত্রণ হারিয়ে উল্টে যায়। বাঁচার জন্য পিয়াস এবং মেশিনে থাকা আরো দুইজন মেশিন থেকে লাফিয়ে পড়লে মেশিনটি উল্টে পিয়াস এর উপর পড়ে।
আহত অবস্থায় পিয়াসকে জোনাইল শাফি জেনারেল হাসপাতালে নিয়ে আসে। অবস্থা আশঙ্কাজনক দেখে রাজশাহী মেডিকেল কলেজ হাসপাতালের উদ্দেশ্যে রওনা দিলে রাস্তায় পিয়াসের মৃত্যু হয়।

বুড়িচংয়ে বাকশীমুল ইউনিয়নের জামতলা গ্রামে প্রতিপক্ষের হামলায় ২জন আহত

বুড়িচংয়ে বাকশীমুল ইউনিয়নের জামতলা গ্রামে প্রতিপক্ষের হামলায় ২জন আহত



মারুফ হোসেন-বুড়িচং(কুমিল্লা) সংবাদদাতাঃ

লক ডাউনেও থামছে না দেশের বিভিন্ন এলাকায় হতাহতের ঘটনা। কুমিল্লার বুড়িচংয়ের বাকশীমুল ইউনিয়নের জামতলা গ্রামে গত ২৩ শে মে শনিবার মৃত ফজলুল হকের ছেলে আবদুল্লাহ আল হাসান ও আবদুল্লাহ আল মামুনকে একই গ্রামের  মোঃ ইদু মিয়া ও তার ছেলে  মোঃ বাদশা মিয়া, মোঃ আরিফ হোসেন, মোঃ শরীফ হোসেন দেশী অস্ত্র দা,ছেনী দিয়ে কুপিয়ে মারাত্মক ভাবে আহত করেছে। এই ব্যাপারে আহত আবদুল্লাহ আল মামুন বাদী হয়ে ৪ জনের বিরুদ্ধে বুড়িচং থানায় মামলা দায়ের করেন। মামলা নং ১২।  আহতরা বতর্মানে বুড়িচং হাসপাতালে চিকিৎসাধীন রয়েছে। 


ঘটনার পরিপ্রেক্ষিতে জানা যায় বাড়ীর রাস্তায় মাটি ফেলাকে নিয়ে পার্শ্ববর্তী মোঃ ইদু মিয়া ও তার ছেলেদের সাথে কথা কাটাকাটি হয়।  এক পর্যায়ে পূর্বের জের ধরে দেশীয় অস্ত্র নিয়ে হামলা করে এবং লাঠি দিয়ে এলোপাথারি পিটাইতে থাকে। দা’য়ের কুপে মামুন ও হাসানের মাথা কেটে যায় এবং  মারাত্মক জখম হয়। মামুন সাংবাদিকদের সাথে কথা বলার সময় জানায় বাদশা মিয়া( আসামি) দীর্ঘ দিন যাবত ভারতের সাথে চোরা কারবারি ব্যাবসা করে আসছে। এলাকায় অনেক খারাপ কাজের সাথে সে জড়িত।     

এই ব্যাপারে অভিযুক্ত বাদশা মিয়ার সাথে যোগযোগের করলে তিনি কোন কথা বলতে রাজি হয়নি। সে এ হামলার  ব্যপারে কোনো কথা বলতে নারাজ। স্থানীয় সূত্রে জানা যায়, বাদশা মিয়া এলাকার একটি আতঙ্কের নাম। সে সবসময়ই উশৃংখল প্রকৃতির আচরণ করে সবার সাথে। সে মাদক ব্যবসার সাথে জড়িত। কাউকে তোয়াক্কা করে না।      
     
পুলিশ সূত্রে জানা যায়, জামতালা গ্রামের মৃত ফজলুল হক ও ইদু মিয়ার ছেলেদের মধ্যে চলাচলের রাস্তা নিয়ে সংঘর্ষ হয়। এই নিয়ে বুড়িচং থানায় অভিযোগ হয়েছে। ঘটনার তদন্ত সাপেক্ষে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা গ্রহন করা হবে।

মাধবপুরে জমি নিয়ে বিরোধের জের দু,পক্ষের সংঘর্ষে নিহত১আহত ১০

মাধবপুরে জমি নিয়ে বিরোধের জের  দু,পক্ষের সংঘর্ষে নিহত১আহত ১০


 
লিটন পাঠান হবিগঞ্জ জেলা প্রতিনিধি

হবিগঞ্জের মাধবপুরে জমি নিয়ে বিরোধের জের ধরে দুপক্ষের সংঘর্ষে  মর্তুজ আলী নামে  এক বৃদ্ধ নিহত ও নারী সহ কমপক্ষে ১০জন আহত হয়েছেন। আজ সকাল ১১ টার দিকে উপজেলার হারিয়া গ্রামে এঘটনা ঘটে। এঘটনায় পুলিশ তিন জন কে আটক করেছে। একটি জমি নিয়ে ওই গ্রামের  শামসুল হক ও মকবুল মিয়ার মধ্যে বিরোধ চলছিল। বিরোধ পূর্ন জমিতে মকবুল   দখলে গেলে  প্রতিপক্ষ সামছুল হক  বাধা দেয়। একপর্যায়ে উভয় পক্ষের লোকজন লাঠি সোটা,

 নিয়ে  সংঘর্ষে জড়িয়ে পড়ে ঘন্টা ব্যাপী সংঘর্ষে উভয় পক্ষের নারী সহ কমপক্ষে ১০জন আহত হয়।   গুরুত্ব আহতদের মধ্যে   বৃব্ধ মর্তুজ আলী   কে মাধবপুর স্বাস্হ্য কমমপ্রেক্স নিয়ে গেলে   কর্তব্যরত ডাঃ মৃত ঘোষনা করেন।  ফজলুর রহমান নামে আরেক বৃদ্ধের অবস্হা আশংকাজনক  বলে জানা গেছে। মাধবপুর থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) ইকবাল হোসেন  সত্যতা নিশ্চত করে বলেন  বিরোধপূর্ণ  জমি নিয়ে দুদলের সংঘর্ষ বাধার খবর পেয়ে পুলিশ দ্রুত ঘটনা স্হলে পৌছে পরিস্হিত নিয়ন্ত্রনে আনে।এঘটনায় তিনজন কে আটক করা হয়েছে।

একজন ব্যত্যিক্রমী উপজেলা নির্বাহী অফিসার হোসাইন মুহাম্মদ আল-মুজাহিদ স্যারের জন্মদিন

একজন ব্যত্যিক্রমী উপজেলা নির্বাহী অফিসার হোসাইন মুহাম্মদ আল-মুজাহিদ স্যারের জন্মদিন
 

মিঠুন কুমার রাজ, 
পিরোজপুর জেলা প্রতিনিধি। 

 উপজেলা নির্বাহী অফিসার হোসাইন মুহাম্মদ আল-মুজাহিদ ইতোমধ্যে দুই বছরের বেশি অতিবাহিত করেছেন ইন্দুরকানীতে। এই স্বল্প সময়ের মধ্যে তিনি একদিকে যেমন মিশে গেছেন ইন্দুরকানী উপজেলার মানুষদের সঙ্গে, অন্যদিকে তেমনি তার কার্যক্রমগুলো ব্যাপক প্রশংসিত হয়েছে সাধারণ মানুষের কাছে।

কাজের স্বীকৃতি স্বরুপ পেয়েছেন সাধারন মানুষের ভালবাসা। হোসাইন মুহাম্মদ আল-মুজাহিদ যোগদানের পর থেকেই ধারাবাহিক কাজের বাইরে অনেক ব্যতিক্রমধর্মী কাজ করেছেন এবং করছেন। তিনি ইন্দুরকানীতে যে কাজ গুলো করে গেছেন তা সত্যি প্রশংসনীয়।

হোসাইন মুহাম্মদ আল-মুজাহিদের বিশেষ প্রচেষ্টায় ইন্দুরকানীর সকল প্রতিষ্ঠান যেন আলোকিত দৃষ্টি ধারণ করেছে। ফলে প্রকৃত মেধাবীরা মূল্যায়িত হচ্ছে।উপজেলায় বাল্যবিবাহ বন্ধে তার অবস্থান অত্যন্ত কঠোর। উপজেলা প্রশাসন শতাধিক বাল্যবিবাহ বন্ধ করেছে এবং বিয়ে আয়োজনের সঙ্গে জড়িত ব্যক্তিদের দেয়া হয়েছে কারাদণ্ড, আর্থিক জরিমানা। বাল্যবিবাহ বন্ধে উপজেলার প্রত্যন্ত গ্রাম গ্রামে চলছে সভা সেমিনার।

পেশাগত দক্ষতা উন্নয়নের জন্যে তিনি উপজেলার বিভিন্ন দপ্তর এবং ইউনিয়ন পর্যায়ের কর্মকর্তা-কর্মচারীদের কম্পিউটার প্রশিক্ষণসহ একাধিক কর্মশালার ব্যবস্থা করেছেন।

নিয়মিত কাজের বাইরে আমাদের বর্তমান নির্বাহী অফিসার হোসাইন মুহাম্মদ আল-মুজাহিদ যা করেছেন তা প্রশংসনীয়। যেগুলো আগে কোনদিন হয়নি, আমিও দেখিনি এবং মানুষ চিন্তা পর্যন্ত করেনি।

সাম্প্রতিক করোনা মহামারী রোগ নিরাময়ের জন্যেও তার ব্যাপক দক্ষতা আমরা দেখেছি। তিনি করোনা আক্রান্ত প্রতিটি বাড়িতে লগডাউন দিয়েছেন এবং লাল নিশানা বেঁধেছেন। 

ক্ষুধা-দারিদ্র, নিরক্ষরতা ও সন্ত্রাসমুক্ত, শোষণহীন সোনার বাংলা গড়ার প্রত্যয়দীপ্ত দৃঢ় অঙ্গিকারে সকল কর্মকর্তাও কর্মচারীবৃন্দ এবং সম্মানিত ইন্দুরকানী উপজেলার দু:সময়ের দরদী বন্ধু উপজেলা নির্বাহী অফিসার হোসাইন মুহাম্মদ আল-মুজাহিদ স্যারের শুভ জন্মদিনে “আন্তরিক শুভেচ্ছা ও অভিন্দন। শুভ জন্মদিন স্যার ।অনেক অনেক শুভকামনা…।সৃষ্টিকর্তার কাছে কামনা করি আপনি বেঁচে থাকুন আরো হাজার বছর…এভাবেই স্বপ্নের বীজ বুনে চলুন আমাদের হৃদয়ে…আমাদের মনে…আমাদের মগজে।
শুভেচ্ছান্তে, 
মিঠুন কুমার রাজ,
সহকারী শিক্ষক ইন্দুরকানী প্রতিবন্ধী বিদ্যালয়। 
গণমাধ্যম কর্মী, 
কপোতাক্ষ নিউজ ডটকম  

পশুর নদীর ভাঙ্গনকুল পরিদর্শনকালে ডিসি মোংলায় পশুর নদীর ভাঙ্গনে ক্ষতিগ্রস্থদের জন্য জরুরী ভিত্তিতে এবং দীর্ঘমেয়াদী পরিকল্পনা নেয়া হবে

পশুর নদীর ভাঙ্গনকুল পরিদর্শনকালে ডিসি  মোংলায় পশুর নদীর ভাঙ্গনে ক্ষতিগ্রস্থদের জন্য  জরুরী ভিত্তিতে এবং দীর্ঘমেয়াদী পরিকল্পনা নেয়া হবে


  মোঃএরশাদ হোসেন রনি,মোংলা   পশুর নদীর ভাঙ্গনের ফলে ক্ষতিগ্রস্থদের জন্য জরুরী ভিত্তিতে এবং দীর্ঘ মেয়াদী পরিকল্পনা গ্রহণ করা হবে। এর আগেও ভাঙ্গন এলাকা পরিদর্শন করা হয়েছে। পুনরায় আমরা আবার সবাইকে নিয়ে পরিদর্শন করলাম। ঘূর্ণিঝড় চ্আম্পানচ্-এ ক্ষতিগ্রস্থদের জন্য জরুরী ভিত্তিতে ত্রান সহায়তাও দেয়া হবে। ২৬ মে মঙ্গলবার সকালে বাগেরহাটের জেলা প্রশাসক মোঃ মামুনুর রশিদ ঘূর্ণিঝড় চ্আম্পানচ্-এ ক্ষতিগ্রস্থ মোংলার পশুর নদীর ভাঙ্গন কবলিত কানাইনগর ও দক্ষিণ কাইনমারি গ্রাম পরিদর্শকালে গণমাধ্যমের কাছে তিনি একথা বলেন। এসময় তিনি চ্আম্পানচ্র জ্বলোচ্ছাসে ক্ষতিগ্রস্থ গ্রামবাসী এবং জনপ্রতিনিধিদের সাথে কথা বলেন। স্থানীয় জনপ্রতিনিধি এবং ক্ষতিগ্রস্থদের সাথে কথা বলে জানা যায় জয়মনি থেকে বিদ্যারবাহন পর্যন্ত ১০ গ্রামে প্রায় ২০ কিলোমিটার জুড়ে পশুর নদীর ভাঙ্গনে অন্তত ২০ হাজার মানুষ ঘূর্ণিঝড় চ্আম্পানচ্র জ্বলোচ্ছাসে প্লাবিত হয়ে ক্ষতিগ্রস্থ হয়েছেন। পরিদর্শনকালে জেলা প্রশাসকের সাথে উপস্থিত ছিলেন উপজেলা চেয়ারম্যান আবু তাহের হাওলাদার, পানি উন্নয়ন বোর্ডের নির্বাহি প্রকৌশল