নাটোরে করোনা সংক্রমণ বেড়ে যাওয়ায় পুলিশের মধ্যে অক্সিমিটার ও অক্সিজেন প্রদান

নাটোরে করোনা সংক্রমণ বেড়ে যাওয়ায় পুলিশের মধ্যে  অক্সিমিটার ও অক্সিজেন প্রদান



রাজশাহী ব্যুরো
নাটোরে পুলিশ সদস্যদের মধ্যে করোনা সংক্রমন বেড়ে যাওয়ায় তাদের সুরক্ষায় জেলার সকল থানায় অক্সিমিটার সহ অক্সিজেন সরবরাহ করা হয়েছে।

নাটোর জেলা পুলিশের উদ্যোগে বুধবার বিকালে পুলিশ লাইন্স ড্রিল সেডে ৭ থানার কর্মকর্তাদের হাতে সরঞ্জাম গুলো তুলে দেন পুলিশ সুপার লিটন কুমার সাহা।এসময় সিভিল সার্জন ডা.কাজী মিজানুর রহমান উপস্থিত ছিলেন।

এর আগে করোনা আক্রান্ত রোগীর শারীরিক পরীক্ষা সহ অক্সিজেন সরবরাহের বিষয় গুলো হাতে কলমে পুলিশ সদস্যদের শিখিয়ে দেন স্বাস্থ্য বিভাগের কর্মকর্তারা।

পুলিশের পাশাপাশি প্রয়োজনে সাধারণ মানুষও থানা থেকে এ সুবিধা ভোগ করতে পারবেন বলে জানান পুলিশ সুপার।

নাটোরে জেলার বিভিন্ন থানা ও আইসিতে কর্মরত ২১ পুলিশ সদস্য করোনা ভাইরাসে আক্রান্ত হয়েছেন।

নাটোরে আওয়ামী লীগের দু’গ্রুপের সংঘর্ষের ঘটনায় আটক ৩

নাটোরে আওয়ামী লীগের দু’গ্রুপের সংঘর্ষের ঘটনায় আটক ৩



রাজশাহী ব্যুরো
নাটোরের গুরুদাসপুরে আওয়ামী লীগের দু’গ্রুপের মধ্যে সংঘর্ষ,ধাওয়া পাল্টা ধাওয়া,গুলি বর্ষন ও বাড়ি ঘর ভাচুরের ঘটনায় সেখানে এখনো থম থমে অবস্থা বিরাজ করছে।

যুবলীগ নেতা বজলুর রহমানের পিতা ইসমাইল সরদারের দায়ের করা মামলার পর পুলিশ অভিযান চালিয়ে ৩ আওয়ামী লীগ কর্মিকে আটক করেছে।মামলায় ২৫ জনের নাম উল্লেখ সহ ৮০ জনকে অভিযুক্ত করা হয়েছে।

ত্রাণ বিতরণ সহ আধিপত্য বিস্তারকে কেন্দ্র করে মঙ্গলবার গুরুদাসপুর উপজেলার ধারাবারিষা ইউনিয়নের বিন্যাবাড়ি এলাকায় সেখানকার ইউপি চেয়ারম্যান আব্দুল মতিন ও উপজেলা যুবলীগের সহ সভাপতি বজলু সরদারের সমর্থকদের মধ্যে এ সহিংশতার ঘটনা ঘটেছিল।

ঈদ সালামি না পেয়ে কিশোরীর আত্মহত্যা

ঈদ সালামি না পেয়ে কিশোরীর আত্মহত্যা



মিরসরাই প্রতিনিধি
মিরসরাইয়ে ঈদ সালামি না পেয়ে এক কিশোরী গলায় ফাঁস দিয়ে আত্মহত্যা করেছে। তার নাম মাইমুনা আক্তার (১৫)। বুধবার (২৭ মে) দুপুরে উপজেলার ১৫ নং ওয়াহেদপুর ইউনিয়নের দক্ষিণ ওয়াহেদপুর গ্রামে এই ঘটনা ঘটেছে। খবর পেয়ে পুলিশ ঘটনাস্থল থেকে লাশ উদ্ধার করে থানায় নিয়ে আসে। নিহম মাইমুনা রাজশাহী শহরের আমচত্বর এলাকার ছালাফিয়া মহিলার মাদ্রাসার ৮ম শ্রেনীর শিক্ষার্থী। সে মিরসরাই উপজেলার মিঠাছড়া এলাকার ধনকাজী ভূঁইয়া বাড়ির মোঃ মহিউদ্দিনের মেয়ে।

নিহত মাইমুনার মামা মোঃ সাইদুল ইসলাম সাইদী জানান, বুধবার সকালে তার বাবা ছোট দুই ভাই বোনকে ঈদ সালামি দেয় দেয় ২০০ টাকা। মায়ের কাছে জানতে চায় তার জন্য দিয়েছে কিনা? তার জন্য ঈদ সালামি দেইনাই শুনে ঘরের ভেতর গিয়ে দরজা বন্ধ করে সিলিং ফ্যানের সাথে ওড়না দিয়ে গলায় ফাঁস লাগিয়ে আত্মহত্যা করে। পরে ঘরের দরজা ভেঙ্গে প্রবেশ করে তার ঝুলন্ত লাশ দেখা যায়। পুলিশে খবর দিলে তারা লাশ উদ্ধার করে থানায় নিয়ে গেছে।

সাইদী জানান, মাইমুনাদের বাড়ি মিঠাছড়ায় হলেও তার বাবার ব্যবসার সুবাধে তারা রাজশাহীতে থাকতো। কয়েক মাস পূর্বে ব্যবসার অবস্থা খুব ভালো না হওয়ায় আমাদের বাড়িতে চলে আসে। তারা এখন আমাদের বাড়িতে (ওয়াহেদপুর) থাকে তারা।

তবে স্থানীয়রা বলছে প্রেম ঘটিত কারণে ওই মেয়ে আত্মহত্যা করেছে।

এই বিষয়ে মিরসরাই থানার অফিসার ইনচার্জ মজিবুর রহমান পিপিএম বলেন, এক কিশোরীর আত্মহত্যার খবর পেয়ে লাশ উদ্ধার করে থানায় নিয়ে আসা হয়েছে। পরিবার বলছে ঈদ সালামি না পাওয়ায় সে আ‏ত্মহত্যা করেছে। তবে আত্মহত্যা কিনা আমরা নিশ্চিত নই। লাশের ময়নাতদন্ত রিপোর্ট আসার পর প্রকৃত ঘটনা জানা যাবে। লাশের ময়নাতন্তের চট্টগ্রাম মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে (চমেক) মর্গে প্রেরণ করা হয়েছে।

কাজিপুরে পৃথক স্থান থেকে বৃদ্ধা নারী ও মানসিক ভারসাম্যহী যুবকের লাশ উদ্ধার

কাজিপুরে পৃথক স্থান থেকে বৃদ্ধা নারী ও মানসিক ভারসাম্যহী যুবকের লাশ উদ্ধার


মাসুদ রানা সিরাজগঞ্জ জেলাপ্রতিনিধিঃ জেলার কাজীপর উপজেলায় পৃথক স্থান থেকে বৃদ্ধা নারী ও মানসিক ভারসাম্যহীন যুবকের লাশ উদ্ধার করেছে পুলিশ।
বুধবার (২৭ মে) বেলা সাড়ে ১১ টার দিকে উপজেলার পৌর এলাকার বেড়িপোটল মহল্লা ও সোনামুখী ইউনিয়নের স্থলবাড়ি গ্রাম থেকে তাদের লাশ উদ্ধার করে পুলিশ।
নিহতরা হলেন, কাজীপুর পৌর এলাকার বেড়িপোটল মহল্লার আব্দুল করিম বক্সের স্ত্রী ছামনা বেগম (৬০) ও সোনামুখী ইউনিয়নের স্থলবাড়ি গ্রামের শহীদ সরকারের ছেলে সিপন সরকার (২৩)।
কাজীপুর থানার উপ-পরিদর্শক (এসআই) আব্দুল মতিন জানান, বুধবার সকালে খবর পেয়ে পুলিশ লাশ দুটি উদ্ধার করা হয়। পরিবারের অভিযোগ ছামনা বেগম দীর্ঘদিন হলো পেটের ব্যথায় ভুগছিলেন। পেটের তীব্র ব্যথার কারণে সে আত্মহত্যা করেছে। তবে তিনি আত্মহত্যা করেছেন নাকি তাকে হত্যা করা হয়েছে তা নিশ্চিত হতে নিহতের লাশ ময়নাতদন্তের জন্য মর্গে প্রেরণ করা হয়েছে।
তিনি আরও বলেন, স্থলবাড়ি গ্রামের শহীদ সরকারের ছেলে সিপন সরকার মানসিক ভারসাম্যহীন। সে আত্মহত্যা করেছে বলে পরিবারের দাবি। খবর পেয়ে পুলিশ তার লাশ উদ্ধার করে। এটি হত্যা না আত্মহত্যা তা নিশ্চিত হতে ময়নাতদন্তের জন্য নিহতের লাশ সিরাজগঞ্জ বঙ্গমাতা শেখ ফজিলাতুন্নেছা মুজিব জেনারেল হাসপাতাল মর্গে প্রেরণ করেছে। এদুটি ঘটনায় থানায় ইউডি মামলা দায়ের করা হয়েছে।

কুয়েতে করোনা ভাইরাসে নতুন আক্রান্ত ৬৯২ মৃত্যু ৩ জন

কুয়েতে করোনা ভাইরাসে নতুন আক্রান্ত ৬৯২ মৃত্যু ৩ জন


দাইয়ানুর রহমান মিষ্টারনুর কুয়েত প্রতিনিধিঃ
কুয়েতের স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয়ের তথ্য মতে, আজ করোনা ভাইরাসে আরো ৬৯২ জন নতুন করে আক্রান্ত হয়েছেন বলে শনাক্ত করা হয়েছে।
এ পর্যন্ত কুয়েতে করোনা ভাইরাসে আক্রান্তের সংখ্যা বেড়ে দাঁড়িয়েছে ২৩২৬৭ জনে, চিকিৎসাধীন  ১৫১৪৬ জন, সুস্থতা লাভ করেছেন ৭৯৪৬ জন ও বর্তমানে সংকটপূর্ণ অবস্থা ১৯৩ জন।

আজ নতুন করে ৩ জনের মৃত্যু হয়েছে।
এনিয়ে মোট মৃত্যু হয়েছে ১৭৫ জনের। 

গত ২৪ ঘন্টায় করোনায় আক্রান্ত বিভিন্ন দেশের নাগরিক।
ভারতীয় নাগরিক -১৬৫
স্থানীয় নাগরিক- ১৭৮
মিশরীয় নাগরিক - ৯৪

🇧🇩''করোনা ভাইরাসে আক্রান্ত বাংলাদেশী আজ নতুন করে আরো ৯৫ জন সহ শনাক্ত মোট ২৪৪০ জন''।
বাকিরা অন্যান্য দেশের।

গভর্নোরেট এলাকায় আক্রান্তদের সংখ্যা।
ফারওয়ানিয়া - ১৯৭
আহমদি - ১৯১
হাওয়াল্লী - ৮৬
জাহরা - ১৪৬
ক্যাপিটাল - ৭২

আবাসিক এলাকায় সর্বোচ্চ আক্রান্ত।
জিলিব আল-সুয়েখ -৪৬
আব্দালি - ৫১
ফারওয়ানিয়া - ৫৮
মাঙ্গাফ - ৪৫

এছাড়াও দেশটির তিনটি জায়গায় যথাক্রমে, জওয়ান রেসর্ট,খাইরান রেসর্ট ও আল-কুত বিচ্ হোটেলসহ আরো বেশ কয়েকটি ক্যাম্পে ২৬১৯ জনকে কোয়ারেন্টাইনে রাখা হয়েছে।

বর্তমানে কুয়েতে ''জরুরী অবস্থা'' চলছে।
সামাজিক দূরত্ব বজায় রেখে চলাফেরা করতে নির্দেশ এবং খুব বেশি প্রয়োজন ব্যতীত ঘরের বাইরে বের হওয়া থেকে বিরত থাকতে নিষেধ করেছে দেশটির স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয়।
কুয়েতের সর্বত্রে লকডাউন ''১০ মে বিকেল ৪টা থেকে ৩০ মে পর্যন্ত''।

সূত্র, আরব টাইমস

মিরসরাইয়ে বজ্রপাতে বয়স্ক মহিলার মৃত্যু

মিরসরাইয়ে বজ্রপাতে বয়স্ক মহিলার   মৃত্যু



মিরসরাই প্রতিনিধি
মিরসরাইয়ে বজ্রপাতে এক মহিলা বৃদ্ধার মৃত্যু হয়েছে। নিহত মহিলার নাম মোমেনা খাতুন (৭০)। সে উপজেলার মঘাদিয়া ইউনিয়নের ৪নং ওয়ার্ডের শফিউল আলমের স্ত্রী। বুধবার (২৭ মে) দুপুর দেড় টায় এই ঘটনা ঘটে।

স্থানীয় মো. নজরুল ইসলাম জানান, দুপুরে গোসল করতে গেলে বজ্রপাতে পুকুর ঘাটে তার মৃত্যু ঘটে।

মঘাদিয়া ইউনিয়ন পরিষদের ৪নং ওয়ার্ডের ইউপি সদস্য দিল মোহাম্মদ দেলোয়ার বিষয়টি নিশ্চিত করেন

জীবাণুনাশক টানেল ব্যবহার বন্ধে নোটিশ

জীবাণুনাশক টানেল ব্যবহার বন্ধে নোটিশ



চট্টগ্রাম প্রতিনিধিঃ
মোঃহাসান রিফাত

সরকারি বা বেসরকারি প্রতিষ্ঠানে জীবাণুনাশক টানেল ব্যবহার বন্ধে উকিল নোটিশ পাঠানো হয়েছে। নোটিশে বলা হয়েছে, মানবদেহ জীবাণুমুক্তের নামে ক্ষতিকর কেমিক্যাল মিশ্রিত জীবাণুনাশক ব্যবহার বন্ধ হওয়া জরুরি। এটা করা না হলে নাগরিকের স্বাস্থ্য দীর্ঘমেয়াদে ঝুকিতে পরতে পারে। করোনাকালীন সময়ে এই জাতীয় জীবাণুনাশক যন্ত্র সরবরাহ ও স্থাপন করে একটি চক্র দেশে এই ধরনের ঝুঁকিপূর্ণ পণ্যের বাজার তৈরি করে অর্থনৈতিক ভাবে লাভবান হতে চায় বলে অবস্থাদৃষ্টে মনে হচ্ছে।
গতকাল বুধবার স্বাস্থ্য সচিব, দুর্যোগ ব্যবস্থাপনা সচিব, বিদ্যুৎ সচিব, স্বাস্থ্য অধিদপ্তরের মহাপরিচালক, আইইডিসিআরের পরিচালক, স্বাস্থ্য প্রকৌশল বিভাগের প্রধান প্রকৌশলী বরাবর ই-মেইল ও ডাকযোগে এ নোটিশ পাঠানো হয়েছে। নোটিশপ্রাপ্তির ৪৮ ঘণ্টার মধ্যে এ বিষয়ে সরকারকে পদক্ষেপ নিতে বলা হয়েছে।

সুপ্রিম কোটের আইনজীবী ব্যারিস্টার শিহাব উদ্দিন খানের দেয়া নোটিশে বলা হয়েছে, করোনা ভাইরাসের প্রকোপ দিন দিন বাড়ছে। ইতমধ্যে করোনা ভাইরাস থেকে রক্ষার জন্য বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থা (হু) নির্দিষ্ট পদ্ধতি অবলম্বনের কথা জানিয়েছে। বাংলাদেশে সম্প্রতি বক্স, চেম্বার, টানেল, গেইট ও বুথ এর মাধ্যমে সরাসরি মানুষের দেহে জীবাণুনাশক ছিটিয়ে করোনার জীবানু দূর করার পদ্ধতি সরকারি ও বেসরকারি প্রতিষ্ঠানে নিতে দেখা যাচ্ছে। গত ১৬ এপ্রিল স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয় হতে দেশের সব সিভিল সার্জনকে চিঠি দিয়ে জীবাণুনাশক টানেল ব্যবহারের ওপর নিষেধাজ্ঞা আরোপ করা হয়। কিন্তু ১১ মে স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয়ের স্বাস্থ্য সেবা বিভাগ সব পর্যায়ের কর্মকর্তা ও কর্মচারীদের স্বাস্থ্য বিধি সংক্রান্ত নির্দেশনা জারি করে। ওই বিধিমালার এক নম্বর নির্দেশনায় বলা হয়েছে ‘প্রয়োজনীয় সংখ্যক জীবানুমুক্তকরণ টানেল স্থাপনের ব্যবস্থা গ্রহণের জন্য গণপূর্ত মন্ত্রনালয়কে নির্দেশনা প্রদান করা যেতে পারে’। এক মাসের মধ্যে একই বিষয়ে দুই ধরনের সিদ্ধান্ত জনমনে নানা প্রশ্নের উদ্রেক করেছে।
নোটিশে বলা হয়েছে, হু মানবদেহে কোনোভাবেই ব্লিচ থেকে শুরু করে যে কোন ধরনের জীবাণুনাশকের ব্যবহার নিষেধ করেছে। সংস্থাটি বলেছে, এইরূপ জীবানুনাশকের প্রয়োগ চোখ এবং চামড়ার বড় ধরনের ক্ষতি করতে পারে। মানুষের পরিচ্ছন্নতার জন্য সাবান এবং সীমিত ভাবে হ্যান্ড স্যানিটাইজারের ব্যবহারের কথা বলেছে হু। একই সাথে যুক্তরাষ্ট্রের সেন্টারস ফর ডিজিজ কন্ট্রোল এন্ড প্রিভেনশন (সিডিসি) স্পষ্ট করে তাদের গাইডলাইনে জানিয়েছে তারা স্যানিটাইজিং টানেলের ব্যবহার সমর্থন করে না। এছাড়া তাদের অফিসিয়াল ওয়েবসাইটে জানিয়েছে, এরূপ জীবানুনাশক প্রয়োগে করোনার ভাইরাস ধ্বংসের কোন প্রমাণ নেই। স্যানিটাইজিং টানেলে যে কেমিক্যাল ব্যবহার করা হয় তা থেকে চোখ, চামড়া এবং শ্বাস যন্ত্রের ক্ষতির কথা বলেছে।
নোটিশে বলা হয়, হু, সিডিসি থেকে শুরু করে পৃথিবীর কোথাও মানুষের শরীরে সরাসরি জীবাণুনাশক ব্যবহারের বিষয়টিকে ঝুকিপূর্ণ মনে করে বাতিল করছে, সেখানে স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয় কর্তৃক সরকারি বা বেসরকারি অফিসে জীবাণুনাশক ট্যানেল ব্যবহারের নির্দেশনা জনমনে ভীতির সঞ্চার করেছে। এতে নাগরিকের দীর্ঘমেয়াদী শারীরিক এবং মানসিক সমস্যায় ভোগার সম্ভাবনা দেখা দিয়েছে । এই ধরনের পদ্ধতি অবলম্বনে এক দিকে সরকারের প্রচুর অথের ব্যয় হবে এবং অন্যদিকে নাগরিকের স্বাস্থ্য সুরক্ষা ঝুকিতে পড়বে। সেজন্য মানবদেহে ব্যবহার কিংবা প্রয়োগের জন্য ব্যবহৃত যে কোন ধরনের ডিভাইজ যেমন বক্স, চেম্বার, ট্যানেল, গেইট, বুথ নোটিশ প্রাপ্তির দুই দিনের মধ্যে বন্ধে কার্যকর পদক্ষেপ নিতে নোটিশে উল্লেখ করা হয়েছে।

করোনার ঝুঁকিতে মাধবপুর রাবার বাগানের শ্রমিকরা

করোনার ঝুঁকিতে মাধবপুর রাবার বাগানের শ্রমিকরা



লিটন পাঠান হবিগঞ্জ জেলা প্রতিনিধি 

করোনার ঝুকি নিয়েও কাজ করছেন হবিগঞ্জের মাধবপুরে শাহজিবাজার রাবার বাগানের প্রায় সাড়ে তিনশত রাবার শ্রমিক প্রতি ত্রিশজনে একটি মাত্র সাবান দেয়া হয়েছে কিন্তু হাত ধোয়ার কোন ব্যাবস্থা নেই  দেশের বিভিন্ন জেলা থেকে আসা এই শ্রমিকরা নিরাপদ সময় পার না করেই কাজে যোগ দিয়েছেন।
জানা গেছে করোনা পরিস্থিতির কারণে ২৬ মার্চ সরকারী ছুটি ঘোষনায় শ্রমিকরা যার যার বাড়ীতে চলে যায়  সরকারী ছুটির সময়সীমা বাড়লেও রাবার 

শ্রমিকদের ছুটি আর বাড়েনি  করোনা ভাইরাস জনিত কোভিড-১৯ বিস্তার রোধে এক জেলা থেকে অন্য জেলায় জনসাধারণের চলাচল কঠোরভাবে নিয়ন্ত্রন থাকার সরকারী নির্দেশ থাকা সত্তেও বাগান ব্যাবস্থাপকের নির্দেশে কোন রকম সতর্কতা ছাড়াই শ্রমিকরা দেশের বিভিন্ন জেলা থেকে এসে পুনরায় কাজ করছেন রাবার শ্রমিক কর্মচারী লীগের  সভাপতি জাহের আলী শাহ ও রাবার শ্রমিক কর্মচারী ইউনিয়নের সাবেক সভাপতি কে এম বাহার আলী শাহ সহ অন্যান্য শ্রমিকরা জানিয়েছেন রাবার বাগানে করোনা ভাইরাস প্রতিরোধ 
মূলক কোন ব্যাবস্থা নেয়া হয়নি তারা জানান রাবার বাগানে টেপার পদের শ্রমিকরা প্রতি ৩০ জনে এক এক দলে 

একজন সুপারভাইজারের নিয়ন্ত্রনে কাজ করেন ৩০ জনের জন্য একবার একটি সাবান দেয়া হলেও  পানির অভাবে কেউই হাত ধোতে পারেনি এক কলমে হাজিরা খাতায় স্বাক্ষর করতে হচ্ছে ত্রিশ জন শ্রমিককে রাবার বাগানে যথাযত স্বাস্থ্যবিধি অনুসরণ না করার অভিযোগ শ্রমিকদের রাবার শ্রমিকসহ এলাকাবাসীর মাঝে করোনা আতঙ্ক বিরাজ করছে। মাধবপুর উপজেলা আওয়ামীলীগের যগ্ম সাধারন সম্পাদক শাহজিবাজার এলাকার এখলাছুর রহমান জানান রাবার বাগানের শ্রমিকরা প্রয়োজনীয় স্যানিটাইজার ও স্বাস্থ্যবিধি অনুসরণ না করে বাগানে কাজ করাটাই এলাকার জনসাধারণের আতঙ্কের বিষয় করোনা সংক্রমন মোকাবেলায় সরকারী স্বাস্থ্য বিধি মেনে সকলের সন্মেলিত ভুমিকা থাকা প্রয়োজন।

এ বিষয়ে জানতে চাইলে রাবার বাগান ব্যাবস্থাপক কে এম মাহবুব আলম বলেন ৩০ জন শ্রমিকের জন্যে একবার ১টি সাবান দেয়া হয়েছে তা সঠিক তবে সরকারী নির্দেশনা মেনেই রাবার বাগানে কাজ করছি পরিসংখ্যান মতে সিলেট বিভাগের মধ্যে হবিগঞ্জ জেলা সর্বাধিক করোনা ভাইরাস ঝুঁকিপুর্ন এলাকা
হবিগঞ্জ জেলার মাধবপুর উপজেলায় রাবার বাগান চা বাগান সহ রয়েছে অনেকগুলি মিল ফ্যাক্টরী করোনা ঝুঁকি মোকাবেলায় এ সকল মিল ফ্যাক্টরী ও বাগানের শ্রমিক এবং মালিকদের আরো অনেক সচেতনতার সাথে স্বাস্থ্যবিধি অনুসরণ না করলে মাধবপুরের পরিনতি হতে পারে অনেক ভয়াবহ।

করোনা ছড়িয়ে পড়ার আশঙ্কা, ছুটিতে আসা মানুষ মানছে না নিয়ম

করোনা ছড়িয়ে পড়ার আশঙ্কা, ছুটিতে আসা মানুষ মানছে না নিয়ম



মোঃ হাবিবুর রহমান শাকিল ডিমলা নীলফামারী প্রতিনিধি:

নীলফামারীর জলঢাকা উপজেলায় ঈদের ছুটিতে দেশের বিভিন্ন জেলা থেকে গ্রামে ঈদ করতে আসা মানুষজন মানছে না নিয়ম কানুন। এতে উপজেলার প্রতিটি গ্রামে করোনা ভাইরাস সংক্রমণ ছড়িয়ে পড়ার আশঙ্কা করছে সচেতনমহল। 

বেশ সফলতার সঙ্গে বিগত মাসগুলোতে করোনা ভাইরাসের কমিউনিটি ট্রান্সমিশনের গতিতে লাগাম টেনে রাখতে সক্ষম হলেও কিন্তু ঈদের ছুটিকে ঘিরে তৈরি হয়েছে নতুন এক শঙ্কা জানালেন উপজেলা আ'লীগের সাধারন সম্পাদক সহীদ হোসেন রুবেল। তিনি আরো বলেন ঈদের দিন তিস্তা ক্যানেলে যেভাবে সব শ্রেনীর মানুষের ভীড় দেখলাম তাতে সহজেই কমিউনিটি সংক্রমণ ঘটবে গোটা উপজেলা জুড়ে। 

স্থানীয়ভাবে এসব মানুষকে হোম কোয়ারেন্টিন নিশ্চিত করতে পারলেই এর সংক্রমণ কম হবে বলে জানান তিনি। শিক্ষক ফিরোজ হোসেন বলেন, শহর থেকে আসা মানুষগুলোর জন্য গ্রামগুলো এখন সবচাইতে ঝুঁকিপূর্ণ। গ্রামে করোনা ভাইরাস ছড়িয়ে পড়লে তার পরিস্থিতি হবে ভয়াবহ। গ্রামের অধিকাংশ মানুষ এখনো করোনা থেকে নিজেকে রক্ষা করার জন্য মানছে না সামাজিক দুরত্ব, করছেনা ব্যবহার গ্লোভস বা মাস্ক। 

নিয়মিত পাহারা দেয়ার ব্যবস্থা না থাকায় গ্রামের মানুষজন এখনো হাট-বাজার ও দোকানে বসে আড্ডা দিচ্ছে। এ কারনেই শহর থেকে আসা মানুষগুলো গ্রামে গিয়ে তার নিজ পরিবার ও আত্মীয়-স্বজনের পাশাপাশি পুরো গ্রামকে ফেলেছেন হুমকির মুখে। এ বিষয়ে উপজেলা স্বাস্থ্য কর্মকর্তা ডাঃ আবু হাসান মোঃ রেজওয়ানুল কবীর জানান, জনগন নিজেই সচেতন না হলে প্রশাসন, থানা পুলিশ ও হাসপাতাল কর্তৃপক্ষ শত চেষ্টা করলেও কাজ হবে না। 

তাই করোনা ভাইরাস সংক্রমণ প্রতিরোধে এলাকা ভিত্তিক হোম কোয়ারেন্টিন নিশ্চিত করতে হবে। তাছাড়া সম্ভব নয়। মানুষ যতক্ষণ নিজে সচেতন হবে না ততক্ষণ করোনা ভাইরাস সংক্রমণ প্রতিরোধ হবেনা বলে জানিয়েছেন উপজেলা নির্বাহী অফিসার মাহবুব হাসান। যারা দেশের বিভিন্ন অঞ্চল থেকে গ্রামে ঈদ করতে এসেছে তাদের তিনি ঘরে থাকার আহবান জানান। 

এক প্রশ্নের জবাবে তিনি বলেন, উপজেলা প্রশাসন কঠোর ভাবে পরিস্থিতি মনিটরিং করছে। যখনই সংবাদ পাচ্ছি আমরা উপজেলা প্রশাসনের পক্ষ থেকে তাৎক্ষণিক সেখানেই ব্যবস্থা নিচ্ছি। তিনি করোনা ভাইরাস সংক্রমণ প্রতিরোধে ব্যাক্তিগত সচেতনতার উপর জোড় দেওয়ার আহবান জানান। এদিকে স্থানীয় বাসিন্দারা ঈদে বাড়ীতে আসা মানুষগুলোর ঘরে থাকা নিশ্চিত করতে প্রশাসনের হস্তক্ষেপ কামনা করেন।

অবৈধ ভাবে নৌ পথে গভীর সমদ্র দিয়ে ভোলা পাড়ি সংবাদ সংগ্রহে করতে গেলে চট্টগ্রামে একদল সাংবাদিককে হত্যার চেষ্টায় হামলা ও ক্যামেরা ভাংচুর

অবৈধ ভাবে নৌ পথে গভীর সমদ্র দিয়ে ভোলা পাড়ি   সংবাদ সংগ্রহে করতে গেলে চট্টগ্রামে একদল সাংবাদিককে হত্যার চেষ্টায় হামলা ও ক্যামেরা ভাংচুর
 


 চট্টগ্রাম প্রতিনিধি
মোঃহাসান রিফাত

মহামারি করোনা পরিস্থিতিতে
থমকে গিয়েছে  পৃথিবী অচল হয়ে পড়েছে আন্তর্জাতিক ব্যবসা  বানিজ্য অচল হয়ে পড়েছে বিশ্বের অর্থনৈতিক সকল কাযক্রম, বিশ্বের অন্যান্য দেশ গুলির মত আমাদের বাংলাদেশ চলছে লকডাউন সরকারি ভাবে বন্ধ ঘোষনা করা হয়েছে বাংলাদেশের অধিকাংশ শিল্প ও পোশাক  কারখানা, করোনা পরিস্থিতিতে বাংলাদেশের জনগণকে রক্ষা করার লক্ষে বাংলাদেশ সরকার গণ পরিবহন  সম্পর্ন বন্ধ ঘোষণা করেছে সে সাথে  শহরে বসবাসরত সকলকে শহর না ছাড়ার /গ্রামের বাড়ি যাওয়ার না যাওয়ার কঠোর সিদ্ধান্ত দিয়েছে প্রশাসনিক উচ্ছ প্রযায়ের কর্মকর্তারা 
বাংলাদেশ সরকারের এ আদেশ না মনে একটি অপরাধী চক্র চট্টগ্রামের  আকমল আলী বেড়িবাধ সাগর পাড় জেলে পাড়া থেকে জীবনের ঝুঁকি নিয়ে প্রতিদিন নৌ পথে গভীর সমুদ্র পাড়ী দিচ্ছেন শত শত পোশাক শ্রমিকরা। 
স্থানীয় একটি বিশেষ সূত্রে জানা যায় ডালিম মাঝি-ইউনুসের অধিনে সোর্স সোহেলের সার্বিক সহযোহিতাই এ অবৈধ নৌ পথে যাত্রী নিয়ে গভীর সমদ্র পাড়ী দেওয়ার কাজক্রম প্রতিনিয়ত চলছে।
এ দিকে গত ২৩ জুন দিবাগত রাত প্রায় ১১ টায় অবৈধ ভাবে যাত্রী নিয়ে নৌ ছাড়ার খবর পেয়ে বিভিন্ন পত্র পত্রিকার ১১ জন সাংবাদিক সংবাদ সংগ্রহের জন্য নগরীর ইপিজেড থানাদ্বীন আকমল আলী বেরীবাদ সাগরপাড় জেলেপাড়ায় গেলে উপস্থিত সাংবাদিকদের উপর সন্ত্রাসী হামলা চালিয়ে সাংবাদিকদের ক্যামেরা ভাংচুর করে সাংবাদিকদেকে হত্যা করার চেষ্টায় ব্যস্ত হয়ে পড়েন 
ডালিম মাঝি  ইউনুসের সন্ত্রাসী বাহিনী সাংবাদিকদের হামলাই প্রকাশে যারা জড়িত ছিলেন তারা হলেন টেনশন দোলাল পিচ্চি সালাউদ্দিন সোহেল  প্রোঃ সোর্স সোহেল  গিয়াসউদ্দিন নেতৃত্বের আড়ালে ইনুস বড়মিঞা মাহাবুব আঃ হক প্রকাশ বরাইয়া রিসিভ ম্যান ইমন এরা ত্রিশ চল্লিশ জনের একটা  গুরুপ  পরে ঘটনা স্থল থেকে কোনো রকম পালিয়ে এসে ইপিজেড থানায় কল দিলে কল দেওয়ার ১০-১৫ মিনিটের মাথায় পুলিশ আসলে হামলাকারীরা পালিয়ে যাই এ বিষয়ে ইপিজেড থানার ওসি তদন্ত মোঃহোসেনের কাছে জানতে চাইলে সাংবাদিকদের কে তিনি বলেন সাংবাদিকদের হামলার ঘটনাই জড়িতদের আইনে আওতায় আনা হচ্ছে 
সাংবাদিক দের হামলার ঘটনায় চট্টগ্রাম রিপোর্টাস ইউনিটি,জাতীয় সাংবাদিক সংস্থা, বাংলাদেশ সাংবাদিক ক্লাব,বাংলাদেশ মফস্বল সাংবাদিক ফোরাম বিএমএসএফ , চট্টগ্রাম সাংবাদিক কল্যান এসোসিয়েশনের নেতারা আসামি দের কে অতি শিগ্রি গ্রেফতার করে আইনের আওতায় আনার আহবান জানিয়েছে।

পিরোজপুরের মঠবাড়িয়ায় মোবাইলে পরিচিত প্রেমিকাকে ধর্ষণের অভিযোগ

পিরোজপুরের মঠবাড়িয়ায় মোবাইলে পরিচিত প্রেমিকাকে ধর্ষণের অভিযোগ



মিঠুন কুমার রাজ, 
পিরোজপুর জেলা প্রতিনিধি। 

 পিরোজপুরের মঠবাড়িয়া উপজেলায় মোবাইল ফোনে পরিচয় ও প্রেমের সূত্র ধরে এক কিশোরীকে অপহরণ করে ধর্ষণের অভিযোগ ওঠেছে শাহাদাত মল্লিক (২১) নামের এক যুবকের বিরুদ্ধে। মঙ্গলবার (২৬ মে) দুপুরে ওই যুবককে গ্রেপ্তার করেছে পুলিশ।
সোমবার রাতে ওই কিশোরীর বাবা বাদী হয়ে শাহাদাত মল্লিককে আসামি করে স্থানীয় থানায় মামলাটি করেন। শাহাদাত ওই উপজেলারই বাসিন্দা। 
পুলিশ ও মামলা সূত্রে জানা গেছে, শাহাদাত ওই কিশোরীর পূর্বপরিচিত। তাদের মধ্যে মোবাইলে কথা হতো। ১৯ মে বিকেলে ওই কিশোরী বাড়ি থেকে ঈদের কেনাকাটা করতে বের হয়। বিকেল পাঁচটার দিকে মিরুখালী বাজারের সেতু এলাকা থেকে শাহাদাত ও তার দুই সহযোগী মেয়েটিকে জোর করে মোটরসাইকেলে তুলে পাশের উপজেলার একটি গ্রামে নিয়ে যায়। সেখানে তাকে একটি একতলা পাকা বাড়িতে ছয় দিন আটকে রেখে শাহাদাত ধর্ষণ করেন। ২৪ মে বিকেলে শাহাদাত মেয়েটিকে সেখানে রেখে চলে যান। এরপর মেয়েটি বাড়ি ফিরে তার পরিবারকে বিষয়টি জানায়। 
মঠবাড়িয়া থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) এ জেড এম মাসুদুজ্জামান জানান, শাহাদাত মল্লিককে আদালতের মাধ্যমে কারাগারে পাঠানো হয়েছে। মেয়েটির স্বাস্থ্য পরীক্ষা করানোর জন্য পিরোজপুর সিভিল সার্জনের কার্যালয়ে পাঠানো হয়েছে বলেও জানান তিনি।

গুলবাগপুর গ্রামের শাহাজাহান আলী আর নেই

গুলবাগপুর গ্রামের শাহাজাহান আলী আর নেই


স্টাফ  রিপোর্টারঃ যশোর জেলার  ঝিকরগাছা  উপজেলার  গুলবাগপুর গ্রামের উপজেলা পাড়ার মরহুম বাবর আলীর ছেলে শাহাজাহান আলী মৃত্যু বরণ করেছেন।
জানা যায় ২৬ শে মে রোজ মঙ্গলবার দিবাগত রাত আনুমানিক ১১ টার দিকে নিজ বাড়িতে বার্ধক্য জনিত কারণে মৃত্যু বরণ করেছেন। (ইন্না-লিল্লাহ-------রাজীউন)।মৃত্যু কালে তার বয়স হয়েছিল ৭৫ বছর, তিনি দুই ছেলে, স্ত্রী সহ  অনেক গুণগ্রাহী রেখে গেছেন।

কেশবপুরে মোমবাতির দাম হটাৎ মাত্রা অতিরিক্ত বৃদ্ধি

কেশবপুরে মোমবাতির দাম হটাৎ মাত্রা অতিরিক্ত বৃদ্ধি


মোরশেদ আলম,যশোর ভ্রাম্যমাণ প্রতিনিধিঃ

সুপার সাইক্লোন আম্ফানের তান্ডবে যশোরের কেশবপুরে বৈদ্যুতিক তার,পোল এর ব্যাপক ক্ষতি হয়, ফলে উপজেলার  সমগ্র স্থানের বিদ্যুৎ সংযোগ বিচ্ছিন্ন হয়।  

বিদ্যুৎ সংযোগ বিচ্ছিন্ন হবার কারণে মানুষের মোমবাতি কেনার হিড়িক পড়ে যায় ছোট বড় দোকানগুলিতে। 

কিন্তু সেই সুযোগ কাজে লাগিয়ে অসাধু ব্যবসায়ীরা মোমবাতির কৃত্রিম সংকট সৃষ্টি করে ২-৩ দফা মূল্যবৃদ্ধি করে বলে, জানা যায় ভুক্তভোগী দের কাছ থেকে। 

এ ব্যাপারে ব্যবসায়ীদের কাছে জানতে চাইলে,কেশবপুর বকুলতলার ব্যবসায়ী কামরুল হোসেন জানান কেশবপুরে মোমবাতির এত প্রচলন কখনোই ছিল না, সুপার সাইক্লোন আম্পানের কারণে বিদ্যুতের যে ক্ষতি হয়েছে সে কারণে একশ্রেণীর ক্রেতারা আগেভাগেই মোমবাতি ক্রয় করে বাজার শূন্য করে ফেলেছে। 

পরবর্তীতে আমরা কেশবপুরের বাইরের থেকে মোমবাতি কিনতে যেয়ে দেখি সেখানে অধিক মূল্যে মোমবাতি বিক্রি হচ্ছে।

 ক্রেতাদের কথা ভেবে, বেশি মূল্যে কিছু মোমবাতি ক্রয় করি ১০ টাকার মোমবাতিগুলো আমরা ১৩ থেকে ১৪ টাকায় কিনতে হয়, পরবর্তীতে ক্রেতাদের নিকট ১৫ টাকা দরে বিক্রয় করি মাত্র। 

শহরের মুরগি বাজারের ব্যবসায়ী ধীরেন পাল বলেন, বেশি দামে মোমবাতি ক্রয় করার ফলে একটু বেশি দামে বিক্রি করতে হচ্ছে। এমতাবস্থায় সাধারণ ক্রেতাদের কাছে জানতে চাইলে তারা বলেন  বিদ্যুৎ সংযোগ না থাকার কারণে মোমবাতির চাহিদা বেড়েছে বহুগুণ। বিদ্যুতের পরিস্থিতি একটু স্বাভাবিক হলেই অচিরেই মোমবাতির সংকট কেটে যাবে। 

বৈদ্যুতিক সংযোগের কাজের অগ্রগতি সম্পর্কে পল্লী বিদ্যুতের কেশবপুর শাখার ডিজিএম, মোহাম্মদ আব্দুল লতিফ স্যারের নিকট জানতে চাইলে, বলেন কেশবপুরে পল্লীতে প্রতিটি সদস্য বিরতিহীন ভাবে কাজ করে চলেছে। অচিরেই কেশবপুরের সকল স্থানে বিদ্যুৎ পৌঁছে যাবে ইনশাল্লাহ।